অন্তঃসত্ত্বা ভক্তের বাড়িতে হাজির রণবীর!

বিনোদন বাজার ॥ প্রিয় তারকাদের সঙ্গে একটা ছবি তোলার জন্য ভক্তরা হুমড়ি খেয়ে পড়েন। অনেক সময় অনেক চেষ্টা করেও তারা সফল হতে পারেন না। কিন্তু রণবীর সিং এভাবে এক ভক্তের স্বপ্ন পূরণ করবেন তা তিনি কখনো ভাবতে পারেননি। সোজা ওই ভক্তের বাড়িতে গিয়ে হাজির হলেন রণবীর স্বয়ং। কিরণ নামে লন্ডন প্রবাসী ওই মহিলা রণবীরের ‘ডাই হার্ড’ ফ্যান। এই মুহূর্তে কপিল দেবের বায়োপিকের শুটিংয়ে লন্ডনে রয়েছেন রণবীর সিং। সোশ্যাল মিডিয়ার মাধ্যমে তিনি জানতে পারেন কিছুদিন পরেই মা হতে চলেছেন কিরণ। আর একথা জানা মাত্রই অভিনেতা তার টিমকে জানান, কিরণকে দেখতে তার বাড়ি যাবেন তিনি। ঠিকই কথা মতো কাজ।কিরণ জানিয়েছেন, ‘রণবীর যখন তার বাড়িতে এসে কলিং বেল বাজান তখন তিনি রান্নাঘরে লুকিয়ে পড়েছিলেন। তার স্বামী গিয়ে দরজা খোলেন। প্রায় দেড় ঘণ্টা কিরণের বাড়িতে ছিলেন রণবীর।’ তিনি লেখেন, ‘মনে হচ্ছিল যেন কোনও পুরনো বন্ধুর সঙ্গে কথা বলছি। রণবীর আমাকে এসে জড়িয়ে ধরেন। আমাদের বিয়ের ছবি দেখেন। এতো ভাল সময় কেটেছে এখনো বিশ্বাস হচ্ছে না।’

চুক্তিবদ্ধ হলেন সিয়াম

বিনোদন বাজার ॥ তরুণ নির্মাতা রায়হান রাফির তৃতীয় সিনেমা ‘স্বপ্নবাজি’। ফ্যাশন জগতের গল্প নিয়ে নির্মিত হবে সিনেমাটি। কয়েক মাস আগেই নিজের নতুন ছবির নাম ঘোষণা করেন তিনি। সিনেমার শুটিং শুরু হলেও নায়ক নিয়ে ছিল শুধুই গুঞ্জন। ‘স্বপ্নবাজি’র নায়ক হতে যাচ্ছেন সিয়াম আহমেদ সেই গুঞ্জন অবশেষে সত্যি হলো। শুক্রবার (২৩ আগস্ট) সন্ধ্যায় এ সিনেমায় চুক্তিবদ্ধ হয়েছেন সিয়াম।জানা গেছে, সিনেমাটিতে অভিনয় করবেন সিয়াম আহমেদ, পিয়া জান্নাতুলসহ আরও অনেক প্রিয়মুখ। অবশেষে গত ২২ জুলাই আনুষ্ঠানিকভাবে চুক্তিবদ্ধ হয়েছিলেন মডেল-উপস্থাপিকা পিয়া জান্নাতুল ও চিত্রনায়িকা মাহিয়া মাহি। এরপর চুক্তিবদ্ধ হন জান্নাতুল ফেরদৌস এশী। গত মাসে শুটিংও শুরু হয়েছে সিনেমাটির। শুটিংয়ে অংশ নিয়েছেন মাহিয়া মাহি, পিয়া জান্নাতুল ও জান্নাতুল ফেরদৌস ঐশী।পি এইচ এন্টারটেইনমেন্টের ব্যানারে সিনেমাটি প্রযোজনা করছেন পিয়াল হোসাইন। সেপ্টেম্বরের মাস থেকে আবার নতুন লটের শুটিং শুরু হবে। আর চলতি বছরেই মুক্তি পেতে পরে ‘স্বপ্নবাজি’ সিনেমাটি।

গুপ্তচরের বেশে পাকিস্তানে যাচ্ছেন ইমরান হাসমি!

বিনোদন বাজার ॥ পাকিস্তানেরর বালুচিস্তান প্রদেশে ক্রমাগত বেড়ে উঠেছে জঙ্গি কার্যকলাপ। ভারতীয় গুপ্তচরদের বিরুদ্ধে লড়ার জন্য জঙ্গিদের উস্কানি দিচ্ছে সেখানকার জঙ্গি নেতারা। বেশ কয়েকজন ভারতীয়কে পাকড়াও করে অস্বাভাবিক অত্যাচার চালানো হচ্ছে। এবার তাদের সেখান থেকে উদ্ধার করতে অ্যাডোনিসকে সেখানে পাঠিয়েছে ভারতীয় গুপ্তচর সংস্থা।অ্যাডোনিস ওরফে কবীর আনন্দ। তাকে অ্যাডোনিস নামেই ডাকা হয়। তবে অ্যাডোনিসকে সেখানে পাঠালেও জঙ্গিদের বিরুদ্ধে গোপনে লড়াই চালাতে গিয়ে মাঝে সেও বিপদে পড়ে যায়। এবার সেখানে পাঠানো হয় আরো এক নারী গুপ্তচরকে। জমে ওঠে লড়াই। এমনই টান টান উত্তেজনাপূর্ণ রোমহর্ষক গল্প নিয়ে নেটফ্লিক্স ইন্ডিয়াতে আসতে চলেছে ওয়েব সিরিজ ‘বার্ড অফ ব্লাড’।সম্প্রতি প্রকাশ্যে এসেছে ‘বার্ড অফ ব¬াড’ এর ট্রেলার। সেখানেই উঠে এসেছে এমন গল্প। এই ওয়েব সিরিজটির পরিচালনা করছেন বাংলার ঋভু দাশগুপ্ত (পরিচালক বিরসা দাশগুপ্তর ভাই)। তারই পরিচালনায় ‘বার্ড অফ ব্লাড’ ওয়েব সিরিজে ভরাতীয় গুপ্তচর অ্যাডোনিসের ভূমিকায় দেখা যাবে ইমরান হাসমিকে।ইমরান ছাড়াও এই ওয়েব সিরিজে গুরুত্বপূর্ণ ভূমিকায় দেখা যাবে বিনীত কুমার সিং, সবিতা ধুলিপালা, কীর্তি কুলকার্নি, জয়দীপ অহলওয়াত, রাজিত কাপুরসহ আরও অনেককেই। এই ওয়েব সিরিজটির প্রযোজনা করছে শাহরুখের ‘রেড চিলিস এন্টারটেইনমেন্ট’। বাইলাল সিদ্দিকীর লেখা একটি বইয়ের উপর ভিত্তি করেই তৈরি হয়েছেন ঋভু দাশগুপ্তর ‘বার্ড অফ ব¬াড’ ওয়েবসিরিজটি।

পোস্টারে ‘রিকশা গার্ল’

বিনোদন বাজার ॥ রিকশা পেইন্টিংয়ের আদলে প্রকাশ্যে এলো নির্মাতা অমিতাভ রেজার দ্বিতীয় চলচ্চিত্র ‘রিকশা গার্ল’ চলচ্চিত্রের প্রথম পোস্টার। নির্মাতা জানান, রোববার প্রকাশিক পোস্টারটিই চলচ্চিত্রের অফিশিয়াল পোস্টার হিসেবে ব্যবহৃত হবে। শুটিং শেষে সম্পাদনা টেবিলে থাকা ছবিটি আগামী বছরের মার্চে মুক্তি দেওয়া হবে।রিকশা পেইন্টিংয়ের আদলে ডিজাইন করা পোস্টারে তুলে ধরা হয়েছে ‘রিকশা গার্ল’ চরিত্রের অভিনয়শিল্পী নভেরা রহমানের মুখ।এতে নভেরার চরিত্রের নাম ‘নাঈমা’। পরিবারকে সাহায্য করার জন্য পুরুষের ছদ্মবেশে অসুস্থ বাবার রিকশা চালাতে শুরু করে। রিকশাটিকে তার বাবা নিজের থেকেও বেশি ভালোবাসেন। রিকশার প্যাডলে তার জীবনের ঘানি টানার গল্পই উঠে এসেছে চলচ্চিত্রে।নভেরা ছাড়াও এতে অভিনয় করেছেন অভিনেত্রী চম্পা, মোমেনা চৌধুরী, নরেশ ভূঁইয়া, অ্যালেন শুভ্রসহ আরও অনেকে।চার মাস ধরে পাবনা, গাজীপুর ও ঢাকার বিভিন্ন লোকেশনে চলচ্চিত্রটির দৃশ্যধারণ করা হয়েছে।ভারতীয় বংশোদ্ভূত যুক্তরাষ্ট্রের লেখিকা মিতালি পারকিনসের লেখা ‘রিকশা গার্ল’ অবলম্বনে চিত্রনাট্য তৈরি করেছেন শর্বরী জোহরা আহমেদ। চলচ্চিত্র প্রযোজনায় রয়েছেন যুক্তরাষ্ট্রের নাগরিক এরিক জে অ্যাডামস।

আসছে ‘ভুলভুলাইয়া ২’

বিনোদন বাজার ॥ অপেক্ষার অবসান। সামনে এল ২০০৭-এ মুক্তিপ্রাপ্ত জনপ্রিয় সাইকোলজিক্যাল থ্রিলার ‘ভুলভুলাইয়া’-এর সিকুয়াল ‘ভুলভুলাইয়া ২’ এর প্রথম পোস্টার। মুখ্য চরিত্রে দেখা যাবে বলিউডের ‘চকোলেট বয়’ কার্তিক আরিয়ানকে। গত সোমবার ইনস্টাগ্রাম অ্যাকাউন্ট থেকে কার্তিক বহু প্রতীক্ষিত ওই ছবির ফার্স্ট লুক প্রকাশ করলেন। ২০০৭-এ মুক্তিপ্রাপ্ত ভুলভুলাইয়ার মুখ্য চরিত্রে দেখা গিয়েছিল খিলাড়ি অক্ষয় কুমারকে। এর দ্বিতীয় পর্বে অক্ষয়কেই রাখা হবে, নাকি বেছে নেয়া হবে নতুন মুখ, সে নিয়ে চলছিল বিস্তর জল্পনা। অক্ষয় ছাড়াও ওই ছবিতে ছিলেন বিদ্যা বালান, আমিশা পটেল এবং পরেশ রাওয়ালের মতো অভিনেতারা। গল্পে অক্ষয়ের চরিত্রের নাম ছিল আদিত্য শ্রীবাস্তব। একজনের মনস্তত্ত্ববিদের ভূমিকায় দেখা গিয়েছিল তাকে। ছবির টাইটেল ট্র্যাক, ‘তেরি আঁখে ভুলভুলাইয়া’ সে সময়ে রাতারাতি ‘ইউথ অ্যান্থেম’ হয়ে উঠেছিল। বিদ্যা বালানের সুদক্ষ অভিনয় মন কেড়েছিল মুভি-ফ্রিকদের। তারপর কেটেছে বারোটা বছর। তবু ভুলভুলাইয়ার নস্টালজিয়া আজো সিনেমাপ্রেমীদের মনে ভাস্বর। সেই নস্টালজিয়া উস্কে দিয়েই বড় পর্দায় আরো একবার ফিরছে এই ছবি। মাথায় ব্যান্ডানা। গায়ে গেরুয়া পোশাক। দুহাতে ধরা রয়েছে খুলি। গলায় রুদ্রাক্ষের মালা। ‘ভূত’ তাড়াতে যে ময়দানে পুরোপুরি নেমে পড়েছেন কার্তিক, তা তার বেশভুষাই বলে দিচ্ছে। সোশ্যাল মিডিয়ায় ওই পোস্ট শেয়ার করে কার্তিক লিখেছেন, ‘ভূত’ ‘তাড়ানোর গুণিন (গোস্টবাস্টার) বাড়িতে প্রবেশ করতে প্রস্তুত।’ তবে ‘ভুলভুলাইয়া ২’-এ কার্তিকের চরিত্রটি ওঝা নাকি অক্ষয়ের মতো মনস্তত্ত্ববিদের, সে বিষয়ে খোলসা করে কিছু জানাননি অভিনেতা।

অস্কারে ইরানের প্রামাণ্যচিত্র

বিনোদন বাজার ॥ অস্কারের ইন্টারন্যাশনাল ফিচার ফিল্ম বিভাগটির প্রতি একটু বেশিই আগ্রহ থাকে সিনেমাপ্রেমীদের। এই বিভাগটি আগে ‘সেরা বিদেশি ভাষার চলচ্চিত্র’ নামে পরিচিত ছিল। এবার এই বিভাগের জন্য ছবি পাঠানোর ক্ষেত্রে ইরান একটু ভিন্নতা দেখিয়েছে। এই বিভাগের জন্য তারা নির্বাচন করেছে একটি ডকুমেন্টারি! অস্কারের জন্য নির্বাচিত ডকুমেন্টারিটির নাম ‘ফাইন্ডিং ফরিদেহ।’ ডকুমেন্টারিটি পরিচালনা করেছেন আজাদেহ মওসাভি এবং কৌরশ আতাই। এক নারীর শেকড়ের সন্ধান করার কাহিনী তুলে ধরা হয়েছে ডকুফিল্মে। এলিন ফরিদেহ নামের সেই নারী এলিন কনিং নামে পরিচিত হলেও তার আসল পরিবার ইরানের। ৪০ বছর আগে যেই পরিবার তাকে চিলড্রেনস হোমে ফেলে চলে গিয়েছিল, সেই পরিবারের সন্ধানে তিনি ইরানে যান। ডকুফিল্মের কাহিনী শুরু হয় ১৯৭৬ এর এক রাত থেকে। ছয় মাসের এক মেয়ে শিশুকে ইরানের মাসহাদে পরিত্যক্ত অবস্থায় পাওয়া যায়। এরপর তাকে একটি এতিমখানায় নিয়ে যাওয়া হয়। সেখান থেকে ডেনমার্কের এক দম্পতি তাকে দত্তক নেয় এবং হল্যান্ডে নিয়ে যায়। ছোট্ট ফরিদাহ বেড়ে উঠতে থাকে একদম ভিন্ন এক পরিবেশে যেখানে নিজের দেশের কোনো বন্ধু নেই তার। কিছুদিন পরে ডেনমার্কের সেই দম্পতির বাড়ির কাছের আরেক দম্পতি ফরিদেহকে দত্তকের কথা শুনে অনুপ্রাণিত হয়। তারাও ইরানে গিয়ে একই এতিমখানা থেকে আরাই বছর বয়সের ফারানাককে দত্তক নিয়ে আসে। দুই শিশুর মধ্যে খুব অল্প সময়ের মধ্যে সখ্য গড়ে ওঠে। পাঁচ বছর পরে এলিনের বাবার কাজের সুবাদে আরেক গ্রামে চলে যেতে হয়। তাই বন্ধুর থেকে দূরে চলে যেতে হয় এলিনকে। বিষয়টি মানতে পারে না এলিন। বাবার সঙ্গে তার সম্পর্ক খারাপ হতে থাকে। নয় বছর বয়সের আরো কঠিন যন্ত্রণায় পড়তে হয় এলিনকে। স্কুলের শিশুরা এলিনকে কটু কথা শোনায়। তখন থেকেই তার আসল পরিবারের সঙ্গে যোগাযোগ করতে ইচ্ছা হয়। দশটি সিনেমার শর্ট লিস্ট থেকে অস্কারের জন্য বেছে নেয়া হয়েছে ‘ফাইন্ডিং ফরিদেহ’ ছবিটি। ‘ফাইন্ডিং ফরিদেহ’ ছবিটি ইরানের সিনেমা সেলিব্রেশন অ্যাকাডেমি অ্যাওয়ার্ডে সেরা ডকুমেন্টারির পুরস্কার পেয়েছে। অনেক বড় চলচ্চিত্র উৎসবে ছবিটি আমন্ত্রিত হয়েছে। অস্কারের এই ক্যাটাগরিতে ইরান এর আগেও দুইবার পুরস্কার জিতেছে। ২০১১ সালে ‘অ্যা সেপারেশন’ এবং ২০১৬ সালে ‘দ্য সেলসম্যান’ ছবি দুটি জিতে নিয়েছিল অস্কার।

মি. ওয়ার্ল্ড হলেন যুক্তরাজ্যের মার্ক

বিনোদন বাজার ॥ মিস্টার ওয়ার্ল্ড ২০১৯ নির্বাচিত হয়েছেন যুক্তরাজ্যের মার্ক হেসেলউড।২৩ আগস্ট ফিলিপাইনের রাজধানী ম্যানিলায় এ আয়োজনের গ্র্যান্ড ফিনালে অনুষ্ঠিত হয়। এবারের আয়োজনে দক্ষিণ আফ্রিকার ফেজিল এমখাইস প্রথম রানারআপ ও মেক্সিকোর আর্তুরো গঞ্জালেজ দ্বিতীয় রানারআপ হন।

বাংলাদেশ থেকে অংশ নেয়া চট্টগ্রামের ছেলে মাহাদী হাসান ফাহিম সেরা ৩০-এর মধ্যে অবস্থান করছিলেন। প্রতিযোগিতার ফল প্রকাশের কিছুক্ষণের মধ্যে ফেসবুকে বাংলাদেশ থেকে খোলা ‘মিস্টার ওয়ার্ল্ড বাংলাদেশ’ পেজ থেকে দুঃখ প্রকাশ করেন এই তরুণ লিখেছেন, ‘দুঃখিত বাংলাদেশ’।এর আগে ফাহিম আক্ষেপ নিয়ে ফেসবুকে একটি স্ট্যাটাস দিয়েছিলেন। সেখানে লিখেছেন, ‘১৬ কোটি মানুষের দেশে ৮ কোটি স্মার্ট ফোন ব্যবহারকারী।কিন্তু আমি দশ হাজার মানুষ পেলাম না, আমায় সাপোর্ট করার জন্য!’ উল্লেখ্য, মিস্টার ওয়ার্ল্ড বাংলাদেশ আয়োজনে প্রথমবারের মতো অংশ নিল বাংলাদেশের কোনো প্রতিযোগী।

গত ২ আগস্ট মিস্টার ওয়ার্ল্ড বাংলাদেশ হিসেবে ফাহিমের নাম ঘোষণা করে দেশে এ আয়োজনের দায়িত্বে থাকা প্রতিষ্ঠান অন্তর শোবিজ।

নিও হয়ে ফেরার ইচ্ছাটা ভেতরে অনেকদিন পুষেছি – রিভস

বিনোদন বাজার ॥ আবারো পর্দায় আসছে ‘ম্যাট্রিক্স’ সিরিজের নতুন কিস্তি। এই খবরটি এরইমধ্যে জেনে গেছে বিশ্বের ‘ম্যাট্রিক্স’ ভক্তরা। ১৯৯৯ সালে ‘দ্য ম্যাট্রিক্স’ দিয়ে শুরু হওয়া সিনেমার তৃতীয় কিস্তি ‘দ্য ম্যাট্রিক্স রেভলিউশন’। এরপর ১৬ বছর কেটে গেলেও তুমুল জনপ্রিয় এই সিরিজের চতুর্থ পর্বের অপেক্ষা অবশেষে শেষ হতে যাচ্ছে।২০২০ সালের শুরুর দিকে চতুর্থ পর্বের কাজ শুরু হবে। এখানে বরাবারের মতো নিও চরিত্রে থাকবেন কানাডিয়ান অভিনেতা ও সংগীতশিল্পী কিয়ানু রিভস।লানা ওয়াচোস্কির পরিচালনায় এই পর্বেও রিভসের সঙ্গে থাকবেন ক্যারি আন মোস। রিভস এই সিনেমাতে অভিনয় প্রসঙ্গে হলিউড গণমাধ্যমে দেওয়া এক সাক্ষাত্কারে বলেন, ‘এটি আনন্দের একটি সংবাদ আমাদের সবার জন্য। যারা একসঙ্গে আগের পর্বগুলো করেছি। এই সিনেমার অন্যন্য একটি উদাহরণ এর জনপ্রিয়তা। নিও হয়ে ফেরার ইচ্ছাটা ভেতরে অনেকদিন পুষেছি। সেটি অবশেষে সফল হতে যাচ্ছে। এছাড়া এখানে আমি যাদের সঙ্গে কাজ করবো তাদের সঙ্গে আমার ভীষণ ভালো বোঝাপড়া। এটিই আমার কাছে সবচেয়ে ভালোলাগার বিষয়।’পরিচালক লানা বলেন, ‘গত ২০ বছর লিলি ও আমি অনেককিছুই ভেবেছি এবং অবশেষে আমাদের বাস্তবতা প্রাসঙ্গিক হতে চলেছে। এই চরিত্রগুলোকে জীবনে ফিরে পেয়ে আমি খুব খুশি। দারুণ সব মেধাবী বন্ধুর সঙ্গে কাজ করার সুযোগ হচ্ছে।’ওয়ার্নার ব্রোস পিকচার গ্রুপের চেয়ারম্যান টবি এমরিচ এই ছবি নির্মাণের ঘোষণা দিয়েছেন। টবি উচ্ছ্বাস প্রকাশ করে জানান, লানা ‘দ্য ম্যাটিক্স’-এর নতুন পর্বটি লিখেছেন ও পরিচালনাও করছেন তিনি।

 

ফেসবুকে ছড়ানো বির্তকিত সেসব ছবি নিয়ে যা বললেন নোবেল

বিনোদন বাজার ॥ এ মুহূর্তে বিতর্কিত ও সমালোচিত সংগীত শিল্পী মাঈনুল ইসলাম নোবেল। আবার তুমুল জনপ্রিয়তাও অর্জন করেছেন তিনি।ক্যারিয়ার শুরু হতে না হতেই আলোচনা-সমালোচনার জালে জড়িয়ে পড়েছেন এ উদীয়মান শিল্পী।সম্প্রতি জাতীয় সংগীত নিয়ে বিতর্কিত মন্তব্য ছুড়ে বেশ বিব্রত অবস্থায় পড়েছেন। এ মর্মে দেশে-বিদেশের শিল্পীদের ভর্ৎসনার শিকার হন নোবেল। সামাজিক যোগাযোগমাধ্যমে তার বিচার চেয়ে বসেন ক্ষুব্ধ নেটিজেনরা।

এ পরিস্থিতি সামাল দিতে না দিতেই নতুন সমস্যায় পড়েন নোবেল। তার বিরুদ্ধে মারাত্মক ধরণের অভিযোগ আনেন গোপালগঞ্জের এক তরুণী।বিয়ের লোভ দেখিয়ে নোবেল তার সঙ্গে শারীরিক সম্পর্ক স্থাপন করেন বলে অভিযোগ করেন শাহরিন সুলতানা নামের ওই তরুণী। সামাজিক যোগাযোগমাধ্যমে এ নিয়ে কয়েকটি ছবিও আপলোড করেন তিনি। নোবেল মাদক সেবন করেন বলেও অভিযোগ করেন সেই তরুণী। বিষয়টি ফেসবুকে ভাইরাল হয়ে পড়লে অসামান্য অপমান জুটে নোবেলের কপালে। এ বিষয়ে নোবেলের বক্তব্য জানতে মুখিয়ে থাকে তার ভক্ত-অনুরাগীরা। তবুও এ বিষয়ে কোনো নোবেলের কোনো বক্তব্য পাওয়া যায়নি সে সময়। শাহরিন সুলতানার সেই পোস্টের পর প্রায় ১০ ঘণ্টা ফেসবুকে দেখা যায়নি দশ লাখেরও বেশি ফলোয়ার সমৃদ্ধ নোবেলের ফেসবুক পেজটি।তবে এবার এ বিষয়ে মুখ খুললেন নোবেল। ফেসবুকে ভাইরাল ওই ছবিগুলো আর ওই নারীর অভিযোগ বিষয়ে নিজের বক্তব্য দিলেন তিনি।সম্প্রতি এক সাক্ষাতকারে নোবেল বলেন, আপনারা জানেন এখন যে কোনো ছবি এমনভাবে এডিট করা যায় যা দেখে আপনার সত্য মনে হবে। এক মুহূর্তে বিশ্বাস করে ফেলবেন সে ছবিকে। আমাকে নিয়ে যে ছবিগুলি প্রকাশ করা হয়েছে, সেগুলোও তেমনই এডিট করা।প্রমাণ হিসেবে তিনি বলেন, যিনি ছবিগুলো প্রকাশ করে আমার বিরুদ্ধে মিথ্যাচার করেছেন, বর্তমানে তার কোনো হদিশ নেই। তার জনপ্রিয়তা ও ভাবমূর্তি ক্ষুন্ন করতেই এসব কাজ করা হচ্ছে বলে জানান নোবেল। সূত্র: জি নিউজ

রেলস্টেশন থেকে সোজা মুম্বাইয়ের স্টুডিওতে সেই রানু মন্ডল

বিনোদন বাজার ॥ ভারতের পশ্চিমবঙ্গের রানাঘাট স্টেশনে গান শুনিয়ে ভিক্ষে করতেন রানু মন্ডল। তার সুরেলা কণ্ঠে গান শুনে অবাক হয়ে যেত মানুষ। ভিড় করত তার চারপাশে।সেই ভবঘুরে শিল্পী রানু মন্ডলের গাওয়া একটি গান ‘এক প্যায়ার কে নাগমা ’ সোশ্যাল মিডিয়ায় ভাইরাল হওয়ার পর পরই তিনি রাতারাতি বিখ্যাত হয়ে ওঠেন।তারপর থেকে ভারত ও বাংলাদেশ থেকে অনেক অফার আসতে থাকে। এমনকি একটি রিয়্যালিটি শো থেকেও ডাক পান তিনি। কিন্তু পরিচয় পত্র না থাকার কারণে সমস্যা হতে শুরু করে।কিন্তু স্বপ্ন যে তার এভাবে বাস্তব রূপ নেবে হয়তো তিনি নিজেও ভাবতে পারেননি। অবাক করার বিষয় হলো ভাইরাল হওয়া গায়িকা রানু মন্ডল প্রথম গান গাইলেন প্রখ্যাত শিল্পী হিমেশ রেশমিয়ার সঙ্গে। রানাঘাটের স্টেশনে ভিক্ষে করা থেকে প্রখ্যাত শিল্পীর সঙ্গে গান করা রানুর কাছে স্বপ্নের থেকে কম কিছু নয়।হিমেশ রেশমিয়ার নজরে পরে যাওয়াতে তার হ্যাপি হার্ডি এবং হিট ছবির জন্য একটি গান রেকর্ড করলেন তিনি। কদিনের মধ্যেই রানু কে দেখা যাবে একটি জনপ্রিয় রিয়ালিটি শোতে।গায়ক ইমেশ রেশমিয়া তার ট্যুইটারে রেকর্ডিঙের ভিডিও শেয়ার করে লিখেছেন তার নিজের ছবি হ্যাপি হার্ডির জন্য গানের রেকর্ডিং করালেন তিনি। ছবিতে অভিনয় করেছেন হিমেশ নিজেই। আর সেই ছবিতে প্লে ব্যাক করছেন রানু।শিশু কণ্ঠশিল্পীদের রিয়েলিটি শো ‘সুপারস্টার সিঙ্গার’র বিচারক হিমেশ রেশামিয়া, অলোকা ইয়াগনিক ও জাভেদ আলি। সেখানেই হিমেশ আমন্ত্রণ জানালেন রানু মন্ডলকে। শুধু তাই নয়, রানুকে বলিউডের সিনেমায় গান গাওয়ার সুযোগও করে দিয়েছেন তিনি।এ প্রসঙ্গে হিমেশ বলেন, ‘সালমান ভাইয়ের বাবা সেলিম খান আঙ্কেল একদিন আমাকে উপদেশ দিয়েছিলেন, জীবনে যদি কখনও কোনো প্রতিভাবান মানুষের সংস্পর্শ পাই, আমি যেন তাকে হারিয়ে যেতে না দিই, বরং তাকে আমার সান্নিধ্যে রাখি। তার প্রতিভাকে বিকশিত হতে সহযোগিতা করতে বলেছিলেন তিনি।’তিনি বলেন, ‘আজ আমি রানুদির সাক্ষাৎ পেয়েছি। আমি অনুভব করি, তিনি ঐশ্বরিকভাবেই আশীর্বাদপুষ্ট। তার গান আমাকে মোহিত করে। আমার পক্ষ থেকে যতটুকু করা সম্ভব আমি তার সর্বোচ্চটুকু তার জন্য করেছি। তার কাছে ঈশ্বরের একটি উপহার আছে যা গোটা দুনিয়ার ছড়িয়ে দেয়া প্রয়োজন।’তিনি আরও বলেন, তার সুললিত কণ্ঠস্বর সবার কাছে পৌঁছে দিতে আমি সহযোগিতা করব। আমার আগামী সিনেমা ‘হ্যাপি হার্ডি অ্যান্ড হীর’তে তিনি গান করবেন। তার প্রথম সিনেমার গান হতে যাচ্ছে ‘তেরি মেরি কাহানি’।এ ছাড়া কলকাতার এক পূজায় এ বার থিম সং গাইবেন রানু মন্ডল।মুম্বাইয়ের বাবুল মন্ডলের সঙ্গে বিয়ে হয়েছিল রানু মন্ডলের। স্বামী মারা যাওয়ার পর রানাঘাটে ফিরে আসেন তিনি। রেলস্টেশনে ঘুরে ঘুরেই গান গাইতেন। তারপর তার গাওয়া গানের ভিডিও ভাইরাল হয়ে যায় ফেসবুকে। এবার স্টেশন থেকে সেই রানু সোজা পৌঁছে গেলেন মুম্বাইয়ের গান রেকর্ডিং স্টুডিওতে।

জীবনকথনে মামুনুর রশীদ

বিনোদন বাজার ॥ বাংলাদেশের নাট্যাঙ্গনের বরেণ্য ব্যক্তিত্ব মামুনুর রশীদ। একাধারে আজও কাজ করে চলেছেন মঞ্চ, টিভি অঙ্গনে। নাট্যকার ও অভিনয় শিল্পী হিসেবে নিজেকে নিয়ে গেছেন অনন্য উচ্চতায়।শুক্রবার সন্ধ্যায় এই নাট্যজন বললেন তার শিল্পীজীবনের নানা কথা।রাজধানীর বেইলি রোডের মহিলা সমিতির নীলিমা ইব্রাহীম মিলনায়তনে আয়োজিত অনুষ্ঠানের শিরোনাম ছিল ‘এক বক্তার বৈঠক : মামুনুর রশীদ’।থিয়েটার পত্রিকার সহযোগিতায় এ অনুষ্ঠানের আয়োজন করে আবদুল্লাহ আল মামুন থিয়েটার স্কুল।টিভিতে নিজের অভিনয় জীবনের সূচনা প্রসঙ্গে মামুনুর রশীদ বলেন, ১৯৬৪ সালে টিভি নাটকে অভিনয় শুরু। সেই নাটকের নাম ছিল ‘একতালা দোতলা’। এরপর ১৯৬৭ সালের দিকে নিজেই টিভি নাটক লেখা শুরু করি।তখন একই সঙ্গে অভিনয় এবং নাটক লেখা দুটোই চলতে থাকে। সেই সময়ের পরিবেশটা অন্যরকম ছিল। এক অভিনয় শিল্পীর সঙ্গে অন্য শিল্পীর বন্ধন খুব দৃঢ় ছিল।সে সময় পাশ্চাত্যের চিন্তা-ভাবনা আমাদের নাটক-সাহিত্যে প্রবলভাবে প্রভাব বিস্তার করেছে। এর মাঝে ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ে পড়ার সময় কাকতালীয়ভাবে নির্মলেন্দু গুণের সঙ্গে পরিচয় হয়।তখনই গুণের হুলিয়া কবিতাটি স্বয়ং কবির মুখ থেকে শুনি। এরপর দেখলাম ক্রমশ বিখ্যাত হচ্ছেন নির্মলেন্দু গুণ। আমার কাছে এই মানুষটি হচ্ছে স্বপ্নে পাওয়া বন্ধুর মতো।অভিনয়জীবন প্রসঙ্গে মামুনুর রশীদ বলেন, গ্রামের সোহরাব-রুস্তম যাত্রা দেখে অভিনয়ের প্রতি আগ্রহী হই। তখন বেশিরভাগ সময়ই ধর্মীয় মূল্যবোধসম্পন্ন নাটক হতো। কলকাতা থেকে নাট্যদল এসে নাটক করত।আমার বাবা ছিলেন পোস্টমাস্টার। সেই সুবাদে পারিবারিক অভিপ্রায় ছিল আমি যেন ডাক্তার কিংবা ইঞ্জিনিয়ার হই। কিন্তু আমার ভেতর অভিনয়টাই প্রবলভাবে জেঁকে বসে। সেই মোহ থেকে আর বের হতে পারিনি।ষাটের দশকে চলে আসি ঢাকায়। সেই সময় আবদুল্লাহ আল মামুনসহ কিছু মানুষের সহযোগিতায় রেডিওতে নাটক করার সুযোগ পাই। তখন আমার ধারণা ছিল, কলকাতার মতো ঢাকায়ও নিয়মিত মঞ্চনাটক হয়।কিন্তু দেখলাম উৎসব-পার্বণ ছাড়া সেভাবে ঢাকায় নিয়মিত নাটক মঞ্চস্থ হয় না। সে সময়ই যুক্ত হয়ে পড়ি এ দেশের নাট্য আন্দোলনে। কথা প্রসঙ্গে তিনি বলেন, সেই সময় রেডিওতে নাটক করতে গেলে কমপক্ষে তিন দিন রিহার্সেল করতে হতো।খান আতাউর রহমানের নির্দেশনায় যখন নাটকে অভিনয় করতাম তখন তাকে খুব ভয় পেতাম। কারুণ তিনি খুব রাগী ছিলেন। এমনও হয়েছে অভিনয়টা ঠিক না হলে শিল্পীকে মেরেও দিতেন। যদিও আমার জীবনে তেমনটা ঘটেনি।

সানির নতুন ভিডিও ভাইরাল

বিনোদন বাজার ॥ সাবেক পর্ণস্টার ও বলিউড অভিনেত্রী সানি লিওন বেশ খোস মেজাজে আছেন। কারণ দিনে দিনে তার ভক্তের সংখ্যা বেড়েই চলেছে। নীল দুনিয়া ছেড়ে এসে বলিউডে নিজের জায়গা করে নিতে অনেক কাঠ খড় পুড়িয়েছেন সানি। হোঁচট থেকে হাল ছেড়ে দেননি কখনই।নিজের যোগ্যতা অনুযায়ি একের পর এক সিনেমায় অভিনয় করেছেন। কখনো কখনো আইটেম গানে পারফর্ম করেছেন। সব মিলিয়ে নিজের কাজের ব্যাপারে সব সময় সচেতন সানি। শুধু অভিনয়ই করে যাননি। পাশপাশি সামাজিক কাজেও ততপর সানি। এমন কী সোশ্যার মিডিয়াতেও বেশ অ্যাক্টিভ রাখেন নিজেকে। কাজের খবরা-খবর শেয়ার করেন ইন্টাগ্রামে। ভক্তের সংখ্যা ধীরে ধীরে বেড়ে চলেছে তার।সোশ্যাল মিডিয়ার বন্ধুরাও সানিকে অনেক পছন্দ করেন। সেই প্রমাণ মিলিছে সানির ইনস্টাগ্রাম প্রোফাইলে। খুশির খবর হলো ইনস্টাগ্রামে সানি লিওনের ফলোয়ারের সংখ্যা বেড়ে হয়েছে ২৫ মিলিয়ন। ফলোয়ার বেড়ে যাওয়ায় বেশ উচ্ছ্বসিত সানি। সেই খুশিতে একটি নতুন ভিডিও করেছেন সানি লিওন। এখানে ভক্তদের প্রতি কৃতজ্ঞতা প্রকাশ করে তিনি লিখেন, ‘আমরা এখন ২৫ মিলিয়নের শক্তিশালি ইনস্টা পরিবার। আমাদের আরও শক্তিশালি হতে হবে। সকলকে আবার অনেক ভালবাসা।’

প্রিয়াংকা এবার নেটফ্লিক্সের সিনেমায়

বিনোদন বাজার ॥ প্রিয়াংকা চোপড়া জোনাস এখন আর আগের মতো নেই। তিনি এখন আর গন্ডায় গন্ডায় বলিউডে কাজ করেন না। প্রিয়াংকার নজর এখন হলিউডের দিকে। বলিউড হলিউডে কাজ করার পর এবার তিনি কাজ করতে যাচ্ছেন নেটফ্লিক্সের জন্য। তাও আবার শুধু অভিনেত্রী হিসেবে নয়, একেবারে সুপারাহিরো হয়ে আসছেন প্রিয়াংকা। নেটফ্লিক্সের এই ছবির নাম ‘উই ক্যান বি হিরোস’। সুপারহিরো ফ্যান্টাসি ফিচার ঘরানার কাজ হবে এটি। ছবিটির গল্পকার ও পরিচালক রবার্ট রদ্রিগেজ। ছবিটি প্রযোজনাও করছেন তিনি। রবার্টের শেষ কাজ ছিল ‘এলিটা: ব্যাটেল অ্যাঞ্জেল’। ‘উই ক্যান বি হিরোস’ ছবিটি গড়ে উঠবে এলিয়েন এবং পৃথিবীর সুপারহিরোদের দ্বন্দ্ব নিয়ে। গল্পে এলিয়েনরা পৃথিবীর সুপারহিরোদের কিডন্যাপ করবে। আর কিডন্যাপ হওয়া সুপারহিরোদের সন্তানরা একত্রিত হবে তাদের বাবা-মাকে উদ্ধার করার জন্য। প্রিয়াংকা ছাড়াও এ ছবিতে আরো থাকবেন ক্রিস্টিয়ান স্টেলার, গোসেলিন, আকিরা আকবর, অ্যান্ড্রু ডিয়াজ, অ্যান্ডি ওয়াকেনসহ আরো অনেকে। ছবির শুটিং বা মুক্তি প্রসঙ্গে কোনো তথ্য জানাননি সংশি¬ষ্টরা। তবে বলিউডে প্রিয়াংকার ছবি নিয়ে আছে বেশ কিছু তথ্য। বলিউডে প্রিয়াংকার ছবি ‘দ্য স্কাই ইজ পিংক’র ওয়ার্ল্ড প্রিমিয়ার হবে টরেন্টো আন্তর্জাতিক চলচ্চিত্র উৎসবে। এ ছাড়াও প্রিয়াংকা প্রযোজনা এবং অভিনয় করবেন বলিউডের আরেকটি সিনেমায়।

 

সালমান খান এবার স্টেশন মাস্টার

বিনোদন বাজার ॥ মাথায় টুপি। স্টেশন মাস্টারের পোশাক পরে ট্রেনের কেবিনে বসে রয়েছেন সালমান খান। কী ভাবছেন নতুন কোনও ছবির দৃশ্য? নাহ, স্টেশন মাস্টারের চরিত্রে আপাতত কোনও ছবিই করছেন না ভাইজান। তবে কি শেষমেষ অভিনয় ছেড়ে স্টেশন মাস্টারের কাজ শুরু করলেন তিনি? না। এবার ‘বিগ বস’ সিজন ১৩-এর প্রোমোর শ্যুটিংয়ের জন্যই সলমনের এই নতুন রূপ।কয়েকদিনের মধ্যে শুরু হতে যাচ্ছে জনপ্রিয় রিয়েলিটি শো ‘বিগ বস’ ১৩। অন্যবারের মতো এবারেও এই টক শোয়ে সঞ্চালকের ভূমিকায় দেখা যাবে সালমানকে। ইতিমধ্যেই বিগ বসের ৪টি প্রোমো শুট করে ফেলেছেন সালমান। তার মধ্যেই একটিতে স্টেশন মাস্টারের ভূমিকায় দেখা যাবে সল্লু ভাইকে। প্রোমোতে একটি ট্রেনের কেবিনে বসে সিজনের বিষয়বস্তু বোঝাবেন তিনি। বিগ বস ১৩-তে আদিত্য নারায়ণ, মুগ্ধা গডসে, চাঙ্কি পান্ডের মতো একাধিক জনপ্রিয় সেলেবকে দেখা যাবে বলে শোনা যাচ্ছে। প্রসঙ্গত, চলতি বছর সেপ্টেম্বরের শেষে শুরু হতে চলেছে ‘বিগ বস’-এর ১৩ নম্বর সিজন।

সমকামী চরিত্রে নারাজ হৃতিক-শাহিদ, বিপাকে পরিচালক

বিনোদন বাজার ॥ সমকামিতা নিয়ে সেলেব্রিটিদের মধ্যে যে এখনো যথেষ্ট অস্বস্তি আছে তা ফের প্রমাণিত হল। ‘দোস্তানা টু’ ঘোষণা করে দিলেও কাস্টিং চূড়ান্ত করতে পারেননি করণ জোহর। সমকামী চরিত্র করতে হবে শুনে পিছিয়ে যাচ্ছেন অনেকেই।মাসখানেক আগে শকুন বত্রার পরিচালনায় ‘দোস্তানা টু’ ঘোষণা করেন করণ। কার্তিক আরিয়ান এবং জাহ্নবী কাপুর থাকছেন। কিন্তু তৃতীয় চরিত্র নিয়েই জটিলতা তৈরি হয়েছে।সূত্রের খবর, কাহিনী অনুযায়ী কার্তিক এবং জাহ্নবী ভাই-বোন। দু’জনে একই পুরুষের প্রেমে পড়ে এবং তা নিয়েই নানা বিপত্তি। কিন্তু আসল বিপত্তি বেধেছে সেই চরিত্রের মুখ খুঁজে পেতে। হৃতিক রোশন, সিদ্ধার্থ মলহোত্র, শাহিদ কপুর, রাজকুমার রাও, দিলজিৎ দোসাঞ্জ এর কাছে প্রস্তাব গিয়েছে এবং প্রত্যেকেই নানা কারণ দেখিয়ে তা ফিরিয়ে দিয়েছেন। প্রশ্ন উঠতে পারে ‘দোস্তানা’ করার সময়ে তো এত সমস্যা হয়নি?হৃতিক কী কারণে চরিত্রটি ফিরিয়ে দিয়েছেন, তা স্পষ্ট নয়। মনে করা হচ্ছে, তিনি সোলো লিড ছাড়া রাজি নন। ‘অর্জুন রেড্ডি’তে শাহিদের চরিত্রটি নিয়ে ইতিমধ্যেই এত বিতর্ক হয়েছে, অভিনেতা এখন সমকামীর চরিত্রে অভিনয় করার ঝুঁকি নিতে চাইছেন না। অনেকদিন পরে হিটের মুখ দেখেছেন তিনি। গ্রেফ আইক্যান্ডি রোল করতে চাইছেন না শাহিদ। করণের ছবিতে রাজি হয়েছিলেন রাজকুমার রাও। তবে ১৩ কোটি টাকা হেঁকেছেন রাজকুমার। যা দিতে রাজি নন নির্মাতারা। এই ছবিটির বাজেটও খুব বেশি নয়। প্রথম ছবির শুটিং হয়েছে মায়ামিতে। এবারের প্রেক্ষাপট দেশের ছোট শহর।‘দোস্তানা টু’র এই জটিলতা বলে দিচ্ছে সমকামিতা নিয়ে বলিউডের উদার মনোভাবের অনেকটাই বোধহয় সোশ্যাল মিডিয়ায় দেখনদারি। বাস্তবের দোস্তানা দূরাস্ত!

সৎ মা কারিনাকে নিয়ে ফের মুখ খুললেন সাইফ কন্যা সারা

বিনোদন বাজার ॥ আজকাল প্রায় মাঝে মধ্যেই পেজ থ্রির খবরে উঠে আসেন সাইফ-অমৃতা কন্যা সারা। বলিউডে এসেই পরপর ‘কেদারনাথ’, ‘সিম্বা’ ছবিতে সাফল্যের ফলে সারার কেরিয়ার অন্যদিকে মোড় নিয়েছে। শিগগিরই ইমতিয়াজ আলির ‘লাভ আজকাল-২’ ছবিতেও কার্তিকের বিপরীতে দেখা যাবে সারাকে। আবার ‘কুলি নাম্বার-১’এ বরুণ ধাওয়ানের বিপরীতেও দেখা যাবে সারাকে। এদিকে শুধু কেরিয়ারেই নয় ব্যক্তিগত জীবনেও সকলের সঙ্গে সু-সম্পর্ক বজায় রাখেন সারা। মা অমৃতার সঙ্গে সাইফের বিচ্ছেদ হয়ে গেলেও কারিনা, তৈমুরের সঙ্গে সারার সম্পর্ক কিন্তু বেশ ভালো। বিশেষ করে কারিনার সঙ্গে। মাঝে মধ্যেই সাইফ, কারিনা, তৈমুর, ইব্রাহিম ও সারাকে একসঙ্গে সময় কাটাতে দেখা যায়। এর আগেও বহুবার কারিনাকে নিয়ে কথা বলেছেন সাইফ কন্যা সারা। আবারো বেবোকে নিয়ে মুখ খুললেন তিনি। কারিনা-সারার সম্পর্ক নিয়ে সাইফ বলেছিলেন বেবো সবসময়ই সারার বন্ধু হতে চেয়েছে। সাইফের কথা প্রসঙ্গেই সম্প্রতি ফেমিনা ম্যাগাজিনের তরফে সারাকে প্রশ্ন করা হলে তিনি বলেন, ‘আমার মনে হয় না কারিনা শুধু আমার বন্ধু, তিনি তার থেকেও বেশি কিছু। তিনি আমার বাবার স্ত্রী। আমি তাকে সম্মান করি। আমি এটা বেশ অনুভব করি কারিনা আমার বাবাকে সুখী করতে পেরেছে। আমাদের পেশাও এক। আমাদের জগৎটাও তাই এক। মাঝে মধ্যেই আমাদের এনিয়ে কথাবার্তাও হয়ে থাকে।’একই সাক্ষাৎকারে তিনি বলেন, ‘আমি বুঝতে পারি তৈমুরকে নিয়ে বাবা কেন এতটা সচেতন। কারণ তৈমুর আজকাল একটু বেশিই পাপারাৎজির ক্যামেরার ফ্ল্যাশে থাকে। আর আমার বাবা কখনোই চায় না যে তৈমুর তার বেড়ে ওঠার মুহূর্তে শৈশবেই বুঝে যাক যে ও একজন বিশেষ কেউ। যদিও তৈমুরের মিডিয়ার ফ্ল্যাশে থাকার বিষয়ে আমরা কেউই কিছুই করতে পারি না। তবে আমি এ বিষয়ে নিশ্চিত আমার বাবা ও করিনা তৈমুরকে শৃঙ্খলার মধ্যেই বড় করে তুলবে। তাতে মিডিয়ার নজরে থেকেও তৈমুরের কোনও ক্ষতি হবে না।’

সুস্থ হয়ে বাড়ি ফিরলেন সৌমিত্র

বিনোদন বাজার ॥ এক সপ্তাহ হাসপাতালে থেকে অবশেষে বাড়ি ফিরলেন ৮৪ বছর বয়সী কিংবদন্তি অভিনেতা সৌমিত্র চট্টোপাধ্যায়।শ্বাসকষ্টজনিত কারণে গত ১৪ আগস্ট সকালে কলকাতার একটি বেসরকারি হাসপাতালে ভর্তি হয়েছিলেন সৌমিত্র।পরে অবস্থার অবনতি হলে তাকে আইসিইউতে নিয়েও চিকিৎসা দেয়া হয়।জানা গেছে, বর্তমানে অনেকটা সুস্থ হয়ে উঠেছেন তিনি। হাসপাতাল ছেড়ে বাড়িতে ফিরেছেন।ভারতীয় সংবাদমাধ্যমগুলো জানিয়েছে, চিকিৎসকদের পরামর্শ নিয়েই বাড়ি ফিরেছেন এই অভিনেতা। বিশ্রাম নেয়ার পাশাপাশি বাড়িতেই চিকিৎসা চলবে তার। কিছুটা সুস্থ হলে তাকে দেখতে যাবেন পশ্চিমবঙ্গের মুখ্যমন্ত্রী মমতা ব্যানার্জি।বুধবার সকালে গলফ গ্রিনের নিজ বাড়িতে হঠাৎ অসুস্থ হয়ে পড়েন এ অভিনেতা। দ্রুত তাকে রুবি হাসপাতালে নিয়ে যান পরিবারের সদস্যরা। চিকিৎসক সুনিপ বন্দ্যোপাধ্যায়ের তত্ত্বাবধানে তার চিকিৎসা চলে।প্রথমে আইসিইউতে রাখা হলেও পরে কিছুটা সুস্থবোধ করলে সৌমিত্রকে ক্যাবিনে স্থানান্তরিত করা হয়।সে সময় হাসপাতাল সূত্র জানিয়েছিল, বেশ কয়েক বছর ধরে শ্বাসকষ্টজনিত সমস্যাসহ বার্ধক্যজনিত অসুস্থতায় ভুগছেন সৌমিত্র চট্টোপাধ্যায়। শরীরে আয়োডিনের প্রচুর অভাব রয়েছে তার।বর্ষীয়ান এ অভিনেতার অসুস্থতার খবর ছড়িয়ে পড়তেই চিন্তিত হয়ে পড়ে কলকাতার শিল্পীমহল। তাকে দেখতে হাসপাতালে ছুটে যান অভিনেতা প্রসেনজিৎ, চিরঞ্জিতসহ আরও অনেকে। নিয়মিত তার স্বাস্থ্যের খোঁজখবর নেন রাজ্যের মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়।সৌমিত্র চট্টোপাধ্যায় একজন ভারতীয় বাঙালি চলচ্চিত্র অভিনেতা। তিনি বিখ্যাত চলচ্চিত্র পরিচালক সত্যজিৎ রায়ের ৩৪টি সিনেমার ভেতর ১৪টিতে অভিনয় করেছেন।১৯৫৯ সালে তিনি প্রথম সত্যজিৎ রায়ের পরিচালনায় অপুর সংসার ছবিতে অভিনয় করেন। পরবর্তীকালে তিনি মৃণাল সেন, তপন সিংহ, অজয় করের মতো পরিচালকদের সঙ্গেও কাজ করেছেন। সিনেমা ছাড়াও তিনি বহু নাটক, যাত্রা এবং টিভি ধারাবাহিকে অভিনয় করেছেন। অভিনয় ছাড়া তিনি নাটক ও কবিতা লিখেছেন, নাটক পরিচালনা করেছেন। অসংখ্য পুরস্কার রয়েছে তার ঝুলিতে।

টিয়ার গপ্পো’ নিয়ে বেলালের গান

বিনোদন বাজার ॥ ফয়েজ আহম্মদের ছড়া থেকে তৈরি হলো গান। আন্না পুনমের ছোটগল্প অবলম্বনে নির্মিত হচ্ছে ‘টিয়ার গপ্পো’ নামের স্বল্পদৈর্ঘ্য চলচ্চিত্র। সেখানে গানটি ব্যবহৃত হবে চলচ্চিত্রের মূল বক্তব্য হিসেবে। সোহেল রানা বয়াতির সুরে গানটিতে কণ্ঠ দিয়েছেন বেলাল খান। ‘টিয়ে তোর বাড়ি কোথা/টিয়ে রে টিয়ে রে রোজ দেখি আকাশে’ এমন কথার গানটির সঙ্গীত করেছেন এম এ রহমান। গান প্রসঙ্গে বেলাল খান বলেন, ধর্ষণ আমাদের দেশে এখন একটা রোগ হয়ে দাঁড়িয়েছে। এই রোগ থেকে মুক্তি পাওয়ার একটাই পদ্ধতি। তা হলো আমাদের মনোভাব পরিবর্তন করা। এমন বিষয়বস্তু নিয়েই চলচ্চিত্রটি নির্মিত এবং গানটি চলচ্চিত্রের মূল বক্তব্য উপস্থাপন করে। ভালো লাগছে এমন কাজের অংশ হতে পেরে। গত ২০ আগস্ট ঢালিউড মোশনের ইউটিউব চ্যানেলে গানটি মুক্তি পায়।

পরিণীতির করুণ পরিণতি!

বিনোদন বাজার ॥ শরীরে কাপড় নেই। বাথটাবে বসা তরুণী। চোখ দুটি আতঙ্কগ্রস্ত। কপালে ক্ষত চিহ্ন। সেই ক্ষত বেয়ে ঝরছে রক্ত। কাঁধেও রক্ত। স্থিরচিত্রটি প্রথম দেখায় অবাক লাগতে পারে। আবার একটু ভয়ও অনুভব হতে পারে। সেটাই স্বাভাবিক। এরকম ক্ষতবিক্ষত কোনো তরুণীর ছবি দেখলে ঘাবড়ে না গিয়ে উপায় নেই। তবে খুব বেশি না ঘাবড়ালেও চলবে। একটু ভালো করে খেয়াল করলে দেখা যাবে স্থিরচিত্রের মেয়েটি বলিউড অভিনেত্রী পরিণীতি চোপড়া। তার অভিনীত মুক্তিপ্রতীক্ষিত সিনেমা ‘দ্য গার্ল অন দ্য ট্রেন’ ছবির প্রথম প্রকাশিত স্থিরচিত্র এটি। পরিণীতি নিজেই ইন্সটাগ্রামে ছবিটি প্রকাশ করেছেন। ছবির ক্যাপশনে পরিণীতি লিখেছেন, এতদিন পর্যন্ত যত চরিত্রে অভিনয় করেছি, তার মধ্যে সবচেয়ে কঠিন চরিত্রে এই মুহূর্তে অভিনয় করছি। হলিউডের জনপ্রিয় সিনেমা ‘দ্য গার্ল অন দ্য ট্রেন’র হিন্দি রিমেক তৈরি করেছেন পরিচালক ঋভু দাসগুপ্ত। ২০১৬ সালে ছবিটি হলিউডে মুক্তি পায়। হলিউডের ওই সিনেমায় অভিনয় করেন এমিলি ব্লান্ট।

বাংলাদেশি ছবিতে সানির পারিশ্রমিক কত!

বিনোদন বাজার ॥ বলিউড অভিনেত্রী সানি লিওন বাংলাদেশের সিনেমায় অভিনয় করবেন। এরই মধ্যে খবরটি বেশ চমক তৈরি করেছে বাংলাদেশি সিনেমার দর্শকের মনে। সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমেও এ নিয়ে চলছে অনেক আলোচনা। অনেকেই জানতে চাইছেন সিনেমার বিশাল বাজার বলিউডের এই অভিনেত্রী কত টাকা পারিশ্রমিক নিচ্ছেন ‘বিক্ষোভ’ ছবিতে অভিনয়ের জন্য? অনেকে আবার জানতে চাইছেন সানি লিওন অংশ নেয়া গানটির বাজেট কত? সেই প্রশ্নের জবাব খুঁজতে যোগাযোগ করা হয় ছবিটির প্রযোজনা প্রতিষ্ঠান স্পø্যাশ মিডিয়ার সঙ্গে। প্রতিষ্ঠানটির কর্ণধার পিংকি খানের বাবা শাপলা মিডিয়ার কর্ণধার সেলিম খান এ প্রসঙ্গে মুখ খুলেছেন। তিনি জানান, গানটি বিগ বাজেটে তৈরি হবে। প্রায় অর্ধকোটি টাকার মতো বাজেট রাখা হয়েছে। গানটি গাইবেন নামকরা শিল্পীরা। আর এর দৃশ্যায়নের পুরো কাজ হবে মুম্বাইতে। কোরিওগ্রাফার হিসেবে থাকবেন বলিউডে অনেক জনপ্রিয় গান উপহার দেয়া ভারতের বব ও পাবন। একটা ফার্স্টক্লাস লেভেলের গান তৈরির পরিকল্পনা করেছি আমরা। তিনি আরো বলেন, আমি দর্শককে হলমুখী করতে অনেক চেষ্টা করছি। সেই দিকটি ভেবেই এই গানে বলিউডের সুপারস্টার সানি লিওনকে চুক্তিবদ্ধ করা হয়েছে। কারণ সানি লিওন বাংলাদেশের দর্শকের কাছে খুব পরিচিত আর পপুলার। তাকে দেখতে দর্শক হলে আসবে সেটাই আমার প্রত্যাশা। সানি লিওনের পারিশ্রমিক কত জানতে চাইলে সেলিম খান বলেন, সানি লিওন আসলে গানটি আমাদের উপহার হিসেবে দিচ্ছেন। তিনি কোনো পারিশ্রমিকই নেবেন না। এখানে পারিশ্রমিকের চেয়ে তার আন্তরিকতাকেই আমরা বড় করে দেখছি। পারিশ্রমিক তো একটা থাকবেই। সেটা পেশাদারিত্বের জন্যই গোপন থাকুক। এদিকে এরই মধ্যে ‘বিক্ষোভ’ সিনেমাটিতে চুক্তিবদ্ধ হয়েছেন কলকাতার অভিনেত্রী শ্রাবন্তী চট্টোপাধ্যায়। এই সিনেমা দিয়ে প্রায় দেড় বছর পর আবারো বাংলাদেশি সিনেমাতে দেখা মিলবে শ্রাবন্তীর। তবে তার বিপরীতে কে থাকবেন সেটি এখনো নিশ্চিত নয়। আগামী ১ সেপ্টেম্বর ঢাকায় এই সিনেমার মহরত হবে।

বাংলাদেশে মুক্তি পাচ্ছে জয়া ও জিতের সিনেমা

বিনোদন বাজার ॥ আবারও সাফটা চুক্তির আওতায় বাংলাদেশে আসছে কলকাতার দু’টি সিনেমা। সেগুলো হলো ১৫ আগস্ট মুক্তি পাওয়া জিতের ‘প্যান্থার’ ও মুক্তির অপেক্ষায় থাকা জয়া আহসানের ‘বিনিসুতোয়’।সিনেমাটি দু’টি বাংলাদেশে আমদানি করতে যাচ্ছে প্রযোজনা সংস্থা তিতাস কথাচিত্র। প্রযোজনা সংস্থাটির একটি সূত্র এমন তথ্যই নিশ্চিত করেছে।খোঁজ নিয়ে জানা গেছে, খুব দ্রুতই সিনেমা দুটি বাংলাদেশে মুক্তির জন্য সেন্সর বোর্ডে জমা পড়বে। প্রথমে মুক্তি পাবের জিতের ‘প্যান্থার’ সিনেমাটি। আর কলকাতার সঙ্গে একই দিনে জয়া আহসানের ‘বিনিসুতোয়’ মুক্তি দেওয়ার পরিকল্পনা রয়েছে তিতাস কথাচিত্রের।নতুন সিনেমা আমদানি করা প্রসঙ্গে তিতাস কথা চিত্রের কর্ণধার আবুল কালাম আজাদ বলেন, ‘আমরা চেষ্টা করছি সিনেমা দু’টি নিয়ে আসতে। তবে এখনো আমরা নিশ্চিত নই। রোববার নিশ্চিত হবে সবকিছু।’প্রসঙ্গত, ‘প্যান্থার’ জিতের ক্যারিয়ারের ৫০তম সিনেমা। সিনেমাটি প্রযোজনা করেছে জিৎ ফিল্ম ওয়ার্ক। পরিচালনা করেছেন অংশুমান প্রত্যুষ। সিনেমাটিতে জিতের বিপরীতে অভিনয় করবেন শ্রদ্ধা দাস। এই সিনেমা নিয়ে অনেক উচ্চাশা ছিলো নায়কের। মুক্তির পর দর্শকের রেসপন্সও ভালো।এদিকে জয়া আহসানে ‘বিনিসুতোয়’ সিনেমাটি পরিচালনা করেছেন অতনু ঘোষ। সিনেমাটিতে জয়ার বিপরীতে প্রথমবারের মতো অভিনয় করছেন ঋত্বিক চক্রবর্তী। সিনেমাটির গল্প লিখেছেন অতনু ঘোষ নিজেই। এই সিনেমাতে জয়া আহসানের গানও শুনতে পারবেন দর্শকরা।