নওয়াজের কাছেই হেরে গেল নওয়াজ

বিনোদন বাজার ॥ নওয়াজ উদ্দিন সিদ্দিকীর অভিনীত ওয়েব সিরিজ ‘সেক্রেড গেমস’কে হারিয়ে এমি অ্যাওয়ার্ডে সেরা ড্রামা সিরিজের পুরস্কার জিতে নিয়েছে তার অভিনীত আরেকটি ওয়েব সিরিজ ‘ম্যাক মাফিয়া’। এই সিরিজে ভারতের ব্যবসায়ী দিল্লি মাহমুদ চরিত্রে আছেন নওয়াজ উদ্দিন সিদ্দিকি। গত মঙ্গলবার সকালে নিউইয়র্কে হিলটন হোটেলে এমি অ্যাওয়ার্ডের আসর অনুষ্ঠিত হয়। যেখানে ‘ম্যাকমাফিয়া’কে সেরা ড্রামা সিরিজ হিসেবে ঘোষণা করা হয়। সেরা ড্রামা সিরিজ পুরস্কার ছাড়াও বেশ কিছু ক্যাটাগরিতে পুরস্কার দেয়া হয়। এক নজরে, সেরা অভিনেতা : হালুক বিলগিনার (পারসোনা, তুরস্ক), সেরা অভিনেত্রী : মেরিনা জেরা (ইটারনাল উইন্টার, হাঙ্গেরি), সেরা কমেডি : দ্য লাস্ট হ্যাংওভার (ব্রাজিল), সেরা ডকুমেন্টারি : ট্রুথ ইন অ্যা পোস্ট (নেদারল্যান্ডস), সেরা ড্রামা সিরিজ : ম্যাক মাফিয়া (যুক্তরাজ্য),

নন-স্ক্রিপটেড এন্টারটেইনমেন্ট : দ্য রিয়েল ফুল মন্টি : লেডিস নাইট (যুক্তরাজ্য), শর্ট-ফর্ম সিরিজ : হ্যাক দ্য সিটি (ব্রাজিল), টেলিনোভেলা : লা রেইনা দেল ফ্লো (কলোম্বিয়া), টিভি মুভি/মিনি সিরিজ : সেফ হারবার (অস্ট্রেলিয়া)।

ভুলে আলিয়ার বিয়ের কথা বলে দিলেন দীপিকা!

বিনোদন বাজার ॥ বলিউড অভিনেত্রী আলিয়া ভাটকে জিজ্ঞেস করা হলে তিনি বার বারই এড়িয়ে যেতেন। রণবীরও এ নিয়ে কোনো দিন মুখ খুলেননি। তবে বিষয়টি আর গোপন রাখতে পারেননি এই দুজন। তাদের বিয়ের কথা ফাঁস করে দিলেন দীপিকা পাড়ুকোন। বিষয়টা তিনি বলতে চাননি, ভুল করেই বলে ফেলেন ক্যামেরার সামনে।

সম্প্রতি একটি টেলিভিশন চ্যানেলের টক শোয়ে হাজির ছিলেন দক্ষিণী অভিনেতা বিজয় দেভেরাকোন্ডা, দীপিকা পাড়ুকোন, রণবীর সিং এবং আলিয়া ভাট। সেখানেই অভিনেতা বিজয়কে তার ক্রাশ সম্পর্কে প্রশ্ন করা হয়।

তখন বিজয় বলেন, ‘দীপিকা এবং আলিয়ার উপর আমার অনেকদিন ধরেই ক্রাশ রয়েছে। কিন্তু দুঃখের বিষয় দীপিকা তো বিবাহিত।’ এর পরেই দীপিকা হঠাৎ বলে বসেন, ‘আলিয়াও তো বিয়ে করছে।’

এসময় সেখানে উপস্থিত আলিয়া এতে ভেটো দিয়ে ওঠেন। বলেন, ‘এ কী! এ সব কথার মানে কী!’

অবস্থা বেগতিক দেখে দীপিকা হেসে বলেন, ‘এ সব আমার মনগড়া।’ বিষয়টি কোনওভাবে তখনকার মতো সামাল দিলেও আরো একবার আলিয়ার বিয়ের গুঞ্জনকে সামনে নিয়ে এলেন দীপিকা।

রাহাতের কণ্ঠে বাংলা গান

বিনোদন বাজার ॥ প্রখ্যাত সংগীতশিল্পী নুসরাত ফতেহ আলী খানের ভাতিজা রাহাত ফতেহ আলী খান পাকিস্তানের পাশাপাশি বলিউডের ছবিতে গান গেয়ে তুমুল জনপ্রিয়তা পেয়েছেন। সেই রাহাত ফতেহ এবারই প্রথম গাইলেন বাংলা গান।

গানটি লিখেছেন বাংলাদেশেরই গীতিকার রবিউল আউয়াল। পাকিস্তানের সালমান আশরাফের সুর-সংগীতে গানটিতে কণ্ঠ দিয়েছেন রাহাত, যা ২৫ নভেম্বর ইউটিউবে উন্মুক্ত হয়।

তোমারই নাম লেখা’ শিরোনামের এই গানটি প্রকাশ পেয়েছে সুরকার সালমান আশরাফের নিজস্ব ইউটিউব চ্যানেলে।

গানটি তৈরি ও প্রকাশ প্রসঙ্গে গীতিকার রবিউল আউয়াল বলেন, আমার লেখা গান যে রাহাত ফতেহ আলী খানের মতো শিল্পী গাইবেন, সেটি আমি স্বপ্নেও ভাবিনি। বিষয়টি ভালো লাগছে।

ঐশ্বরিয়ার স্বামীর মান ভাঙালেন শাহরুখ

বিনোদন বাজার ॥ সাবেক বিশ্বসুন্দরী ঐশ্বরিয়ার রাইয়ের স্বামী অভিষেক বচ্চনের অভিমান ভাঙিয়েছেন বলিউড সুপারস্টার শাহরুখ খান। কোনো ছবি বক্স অফিসে সারা ফেলতে না পারায় দীর্ঘদিন ধরে অভিনয় থেকে দূরে ছিলেন জুনিয়র বচ্চন। তাকে ফের চলচ্চিত্রে ফেরালেন শাহরুখ। খবর এনডিটিভির।

‘বব বিশ্বাস’ নামে একটি ছবিতে চুক্তিবদ্ধ হয়েছেন অভিষেক। যেটি প্রযোজনা করছেন শাহরুখ খান। বলিউড সুপারস্টারের প্রযোজনা প্রতিষ্ঠান রেড চিলিস এন্টারটেইনমেন্টের নির্মিত ছবিটিতে অভিষেকের বিপরীতে কে অভিনয় করবে সেটি এখনও জানা যায়নি।

২০০০ সালে জে পি দত্তের ‘রিফুজি’ সিনেমা দিয়ে চলচ্চিত্র অঙ্গনে পা রাখেন বলিউড বাদশাহ অভিতাভ বচ্চনের ছেলে অভিষেক বচ্চন। প্রথম ছবিতে পুরোপুরি ফ্লপ হন জুনিয়র বচ্চন। পরে আরও কয়েকটি সিনেমায় অভিনয় করেছেন, কিন্তু কোনো ছবিতেই আশানুরুপ সাফল্য পাননি।

অভিষেকে সফলতা আসে বলিউড সেনসেশন ঐশ্বরিয়ার হাত ধরে। ২০০৬ সালে ঐশ্বরিয়া রাই অভিনীত ‘গুরু’ ছবিতে নায়ক হিসেবে অভিনয় করে নিজেকে মেলে ধরেন অভিষেক।

পরে এই নায়কের একাধিক তারকাখচিত সিনেমাগুলো হিট হয়েছে। এগুলোর মধ্যে রয়েছে ‘ধুম টু’, ‘দস্তানা’, ‘পা’, ‘বোল বচ্চন’, ‘হ্যাপি নিউ ইয়ার’ ও ‘হাউসফুল থ্রি’।

পরবর্তীতে অভিষেক বিয়ে করেন বিশ্বসুন্দরী ঐশ্বরিয়াকে। বিয়ের পর এই দম্পতি ছবি করেন বেছে বেছে। ঐশ্বরিয়াকে তো দেখা গেছে কালেভদ্রে।

অভিষেককে সর্বশেষ ‘মনমর্জিয়া’ ছবিতে দেখা গেছে, যেটি গত বছরের ৮ সেপ্টেম্বর মুক্তি পেয়েছিল। এরপর দীর্ঘদিন ধরে বিরতিতে ছিলেন অভিষেক। এবার ঐশ্বরিয়ার স্বামীর সেই বিরতি ভাঙালেন শাহরুখ খান। ‘বব বিশ্বাস’- নামে ওই ছবিতে দেখা যাবে তাকে।

বিষয়টি নিশ্চিত করে টুইট করেছেন অভিষেক শাহরুখ দুজনেই।

আগামী বছরের শুরুর দিকে বব বিশ্বাস ছবির শুটিং শুরু হবে। মুক্তি পাবে ২০২০-তে।

ইউটু’র সঙ্গে এ আর রহমান

বিনোদন বাজার ॥ ভারতের অস্কারজয়ী সঙ্গীতশিল্পী এ আর রাহমান এবার বিখ্যাত আইরিশ ব্যান্ড ইউটু’র সঙ্গে মিলে একটি গান তৈরি করছেন। এই যৌথ প্রযোজনার শিরোনাম ‘অহিংসা’। গত ২২ নভেম্বর টুইটারে এ আর রাহমান গানের প্রথম দুই লাইন শেয়ার করে লিখেছেন, ‘আই’ল মিট ইউ হোয়্যার দেয়ার ইজ নো স্লিপিং, বাট উই ওয়েক আপ টু ড্রিম…। ইউটু’র সঙ্গে আমার যৌথ কাজ ‘অহিংসা’। গানের শুরুতে শোনা যায়, তামিল ভাষায় গাইছেন এ আর রাহমানের দুই মেয়ে খাতিজা ও রহিমা। এরপর আসে ইউটু ব্যান্ডের গায়ক বোনো। আগামী ১৫ ডিসেম্বর ভারতে প্রথমবারের মতো সঙ্গীত পরিবেশন করতে যাচ্ছে ইউটু। তারা ভারতে পা রাখার আগেই নতুন গানটি প্রকাশ হবে।

সুখবর নিয়ে ঢাকায় দেব

বিনোদন বাজার ॥ এর আগেও দুবার ঢাকায় এসেছেন টলিউড অভিনেতা দেব। এবার এসেছেন দুটি নিজস্ব কারণে। প্রথম তার অভিনীত কলকাতার সিনেমা ‘পাসওয়ার্ড’র মুক্তি। অন্যটি সরাসরি প্রথমবার বাংলাদেশের সিনেমায় কাজের খবর দিতে।

মঙ্গলবার (২৬ নভেম্বর) সন্ধ্যায় ঢাকার এক অভিজাত ক্লাবে প্রথমবার সাংবাদিকদের মুখোমুখি বসেছিলেন তিনি। সেখানেই এই খবর দেন দেব। সম্মেলনের শুরুতেই বলেন, ‘অনেক হয়েছে দুই দেশের গল্প, তর্ক, বিতর্ক।

দেব বলেন, এবার আমাদের এক হয়ে লড়াই করতে হবে বাঙালিয়ানা রক্ষার জন্য। বাংলা ভাষার সিনেমা রক্ষার জন্য আমাদের এক হওয়ার কোনও বিকল্প নেই।’ দেব জানালেন, ২৯ নভেম্বর প্রথমবারের মতো বাংলাদেশে মুক্তি পাচ্ছে তার অভিনীত কলকাতার ছবি ‘পাসওয়ার্ড’। এছাড়াও এবারই প্রথম তিনি অভিনয় করতে যাচ্ছেন বাংলাদেশের ছবিতে। ছবিটির নাম ‘মিশন সিক্সটিন’। যেখানে তিনি ছাড়া পুরো ছবির টিম হলো বাংলাদেশের। ছবিটি প্রযোজনা করছে শাপলা মিডিয়া। সংবাদ সম্মেলনে দেবের সঙ্গে কলকাতা থেকে আরও এসেছেন ‘পাসওয়ার্ড’ ছবির নায়িকা রু´িণী মৈত্র ও পরিচালক কমলেশ মুখোপাধ্যায়। আরও ছিলেন বাংলাদেশের নতুন নায়ক শান্ত, প্রযোজক সমিতির সভাপতি খোরশেদ আলম খসরু, পরিচালক সমিতির সভাপতি মুশফিকুর রহমান গুলজারসহ অনেকেই।

বাংলাদেশ সম্পর্কে আবেগঘন কণ্ঠে বলেন, ‘বাংলাদেশ আমার দ্বিতীয় বাড়ি। যতবার এখানে এসেছি কিংবা বিশ্বের যেখানেই গেছি- এখানকার মানুষ কতোটা ভালো, কেমন আপ্যায়ন করেন- সেটা শুধু দুচোখ ভরে দেখেছি আর মুগ্ধ হয়েছি। এই দেশের মানুষের মতো অতিথিপরায়ণ গোটা পৃথিবীতে নেই। এটা আগেও বহুবার বলেছি। ধন্যবাদ বাংলাদেশ।’ এটুকু বলতেও দ্বিধা করেননি দেব, ‘আমাকে নিয়ে পশ্চিমবঙ্গে যতটা আগ্রহ দেখেছি, তারচেয়ে বেশি উৎসাহ দেখেছি বাংলাদেশের দর্শকদের কাছে।’ বাংলা ছবি বাঁচানোর লক্ষ্যে দেবের আহ্বান, ‘এখনই সময়, একসঙ্গে একহয়ে দুই বাংলায় একই দিনে ছবি রিলিজের। কারণ ইন্ডাস্ট্রিকে বাঁচানোর জন্য সবাইকে এক হতে হবে। এই বাংলা ভাষার লোক পৃথিবীজুড়ে ছড়িয়ে আছে- তাদের জন্য আমাদের এই লড়াইটা করতে হবে। এবারের লড়াই বাঙালিয়ানার।

এসব বক্তব্যের শেষে তিনি জানান, বাংলাদেশের প্রথম ছবি ‘মিশন সিক্সটিন’-এ অভিনয়ের কথা। অনুরোধ করেন, ২৯ নভেম্বর থেকে ‘পাসওয়ার্ড’ ছবিটি হলে গিয়ে দেখার।

নতুন পরিচয়ে মৌসুমী

বিনোদন বাজার ॥ নতুন রূপে ভক্তদের সামনে হাজির হয়েছেন জনপ্রিয় চলচ্চিত্র তারকা মৌসুমী। এবিসি রেডিও ৮৯.২ এফএমে ড্রিংকো ফ্লোট প্রেজেন্টস মৌসুমী হাওয়া নামের একটি অনুষ্ঠানে শ্রোতাদের সঙ্গে কথা বলছেন তিনি। আরজের ভূমিকায় প্রথমবারের মতো হাজির হলেন জনপ্রিয় এই তারকা।

কানে হেডফোন লাগিয়ে মাইক্রোফোনের সামনে বসে বলছেন, আপনারা শুনছেন এবিসি রেডিও ৮৯.২ এফএম। চলছে ড্রিংকো ফ্লোট প্রেজেন্টস মৌসুমী হাওয়া। আপনার কথা আমার কাছে পৌঁছে দিতে টেক্সট করুন…।

গত রোববার থেকে এবিসি রেডিও এফএম ৮৯.২–তে ‘মৌসুমী হাওয়া’ নামের নতুন একটি শো প্রচার করা হচ্ছে।

মৌসুমী চলচ্চিত্রে অগণিত ভক্ত তৈরি করেন। আর এবার নতুন ব্যস্ততা শুরু হলো রেডিওর আরজে হিসেবে।

মাস তিনেক আগে এবিসি রেডিও থেকে তিনি অনুষ্ঠান উপস্থাপনার প্রস্তাব পান। তিনি বলেন, আমার ভালো লেগেছে। শুধু কাজ হিসেবেই এটি করছি না। দর্শকের সঙ্গে সপ্তাহে একদিন অন্তত সরাসরি কথা বলতে পারব।’

অনুষ্ঠানের মাধ্যমে মৌসুমীর জীবনের নানা দিকও ভক্তরা জানতে পারবেন। মাঝেমধ্যে নিজের পছন্দের শিল্পীদের নিয়েও স্টুডিওতে আড্ডায় মেতে উঠবেন বলে জানান মৌসুমী।’

প্রতি সপ্তাহে রোববার রাত ৯টা থেকে ১১টা পর্যন্ত কান পাততে হবে এবিসি রেডিওতে।

আবারো অসুস্থ হয়ে হাসপাতালে এটিএম শামসুজ্জামান

বিনোদন বাজার ॥ বিশিষ্ট অভিনেতা এটিএম শামসুজ্জামান আবারো অসুস্থ হয়ে পড়েছেন। সোমবার দুপুরে তাকে বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিব মেডিক্যাল বিশ্ববিদ্যালয় (বিএসএমএমইউ) হাসপাতালে ভর্তি করা হয়েছে।
এটিএম শামসুজ্জামানের ছোট ভাই আলহাজ্ব সালেহ জামান সেলিম জানান, আগস্ট মাসে বাসায় ফেরার পর তিনি ভালোই ছিলেন। কিন্তু চিকিৎসকের কিছু পরামর্শ সঠিকভাবে না মানায় তিনি আবারো অসুস্থ হয়ে পড়েছেন। তবে এটি গুরুতর কিছু না।
পারিবারিক সূত্রে জানা গেছে, এটিএম শামসুজ্জামান মলত্যাগের জটিলতায় ভুগছেন। তিনদিন ধরে মলত্যাগ করতে পারছেন না তিনি। ফলে পেটে ব্যথা ও গ্যাসের সমস্যা দেখা দিয়েছে। দুপুর ১২টায় তাকে হাসপাতালে নিয়ে যাওয়া হয়। চিকিৎসকরা দেখার পর ভর্তির পরামর্শ দেন। পরে তাকে বঙ্গবন্ধু মেডিকেল বিশ্ববিদ্যালয় হাসপাতালে ভর্তি করা হয়েছে।
এর আগে গত ২৬ এপ্রিল রাতে হঠাৎ করেই অসুস্থ হয়ে পড়েন এটিএম শামসুজ্জামান। এ সময় তার মল-মূত্র বন্ধ হয়ে যায় ও শ্বাসকষ্ট শুরু হয়। গুরুতর অসুস্থ অবস্থায় ওইদিন রাত এগারোটার দিকে তাকে রাজধানীর গেন্ডারিয়ার আজগর আলী হাসপাতালে ভর্তি করা হয়। পরদিন ২৭ এপ্রিল (শনিবার) দুপুরে প্রায় তিন ঘণ্টার অপারেশন শেষে তাকে নিবিড় পরিচর্যা কেন্দ্রে (আইসিইউ) রাখা হয়। এ সময় তিনি স্বাভাবিক নিঃশ্বাস নিতে না পারায় তাকে লাইফ সাপোর্টে রাখা হয়।
হাসপাতালের ওই বিভাগের কর্তব্যরত চিকিৎসক ক্রিটিক্যাল কেয়ার বিশেষজ্ঞ মো. মতিউল ইসলাম জানান, ‘আমরা এখনও তাকে বিপদমুক্ত বলতে পারছি না। কেননা তিনি মূলত বার্ধক্যজনিত সমস্যায় ভুগছেন। এই অবস্থায় সমস্যা একটি অঙ্গ থেকে অন্য অঙ্গে ছড়িয়ে পড়ে। কেবিনে দেওয়ার আগে পর্যন্ত আমরা কোনোভাবে বিপদমুক্ত বলতে পারছি না।’
উল্লেখ্য, এটিএম শামসুজ্জামান ১৯৪১ সালের ১০ সেপ্টেম্বর নোয়াখালীর দৌলতপুরে জন্মগ্রহণ করেন। তিনি জীবনের দীর্ঘ সময় কাটিয়েছেন পুরান ঢাকার দেবেন্দ্রেনাথ দাস লেনে। ১৯৬১ সালে পরিচালক উদয়ন চৌধুরীর ‘বিষকন্যা’ চলচ্চিত্রে সহকারী পরিচালক হিসেবে সিনেমা জগতে প্রবেশ করেন। পরিচালক নারায়ণ ঘোষ মিতার পরিচালনায় ‘জলছবি’ চলচ্চিত্রের জন্য জীবণের প্রথম কাহিনী ও চিত্রনাট্য লিখেছেন। এ ছবির মাধ্যমেই অভিনেতা ফারুকের চলচ্চিত্রে অভিষেক।
এরপর এখন পর্যন্ত শতাধিক চিত্রনাট্য ও কাহিনী লিখেছেন তিনি। তবে অভিনেতা হিসেবে এ টি এম শামসুজ্জামানে চলচ্চিত্র পর্দায় পা রাখেন ১৯৬৫ সালের দিকে। ১৯৭৬ সালে চলচ্চিত্রকার আমজাদ হোসেনের ‘নয়নমণি’ চলচ্চিত্রে খলনায়কের চরিত্রে অভিনয়ের মাধ্যমে আলোচনা আসেন তিনি। ১৯৮৭ সালে কাজী হায়াত পরিচালিত ‘দায়ী কে’ চলচ্চিত্রে অভিনয় করে শ্রেষ্ঠ অভিনেতা বিভাগে জাতীয় চলচ্চিত্র পুরস্কার পান।

রুপা গাঙ্গুলি তিনবার আত্মহত্যার চেষ্টা করেছিলেন

বিনোদন বাজার ॥ বাঙালি কথা সাহিত্যিক মানিক বন্দ্যোপাধ্যায় রচিত কালজয়ী উপন্যাস ‘পদ্মা নদীর মাঝি’। সেই উপন্যাস অবলম্বনে বরেণ্য নির্মাতা বাংলাদেশ-ভারতের যৌথ প্রযোজনায় নির্মাণ করেন একই নামের চলচ্চিত্র।

১৯৯৩ সালে মুক্তি পাওয়া সেই ছবিতে কপিলা চরিত্রে অভিনয় করে প্রশংসিত হন কলকাতার অভিনেত্রী রূপা গাঙ্গুলী। শক্তিমান একজন অভিনেত্রী হিসেবে প্রতিষ্ঠিত রূপা। এখন আর অভিনয়ে তেমন নিয়মিত নন। তবে সক্রিয় রয়েছেন রাজনীতিতে।

সম্প্রতি আলোচনায় এসেছে তার ব্যক্তিজীবনের কিছু অজানা কথা। এক সাক্ষাৎকারে রূপা জানিয়েছেন, দাম্পত্য কলহের জেরে অতিষ্ঠ হয়ে উঠেছিলেন তিনি। যন্ত্রণায় হতাশায় তিন তিনবার আত্মহত্যার চেষ্টাও করেছেন।

১৯৯২ সালে রূপা গাঙ্গুলি বিয়ে করেন ধ্রুব মুখোপাধ্যায়কে। সমস্যা শুরু এই বিয়ে নিয়েই। এক সাক্ষাৎকারে রূপা জানিয়েছেন, বিয়ে টিকিয়ে রাখতে, দাম্পত্য বজায় রাখতে কী না করেছেন তিনি। তার ভাষ্য, ‘তখনও আমায় ঘিরে দ্রৌপদীর জনপ্রিয়তা। রাস্তায় বেরোলে সবাই আগ্রহ দেখায় আমাকে নিয়ে। ছোট-বড় পর্দা মিলিয়ে অনেক কাজ হাতে।

তারপরেও ‘আমি বিবাহিত’, এই কথা প্রতি পদে মনে রেখে একজন বাঙালি ঘরের মেয়ে যা যা করেন আমি সবটাই করেছি। সকাল ৯টার আগে আর রাত ১০ টার পর ফোন ধরতাম না। একা আমার নামে নিমন্ত্রণ কার্ড এলে সেখানে যেতাম না। শুট শেষ হলেই মেকআপ না তুলে প্রায় ছুটে বাড়ি ফিরতাম।

তারকা হিসেবে কোনো হামবড়াই ভাব দেখাইনি ধ্রুবর কাছে। কাজের লোক না এলে ঘর ঝাঁট দিতাম। মুছতাম। বাসন মাজতাম। কাপড়ও কেচেছি। তারপরেও দেখি ধ্রুব আমায় নিয়ে হীনমন্যতায় ভুগছে। দর্শক ‘দ্রৌপদী’ হিসেবে আমায় মেনে নিয়েছেন। ভালোবেসেছেন। তাই আমি জনপ্রিয়। এটা ও মেনে নিতে পারেনি। এখানে আমার দোষ কী?’

অত্যাচার শুরু এভাবেই। ধাপে ধাপে তা বাড়তে বাড়তে ভয়ানক আকার ধারণ করল বলে দাবি রূপার। তিনি বলেন, ‘সংসার বাঁচাতে শেষমেশ মুম্বাই ছেড়ে ধ্রুবর সঙ্গে কলকাতায় চলে এলাম। কাজ গেল। তাও হজম করলাম। অন্তত স্বামী থাক। এই ভেবে। কিন্তু তাতেও ওর মুড ঠিক হলো না।

তারকা স্ত্রীকে ধ্রুব না পারে ফেলতে না পারে গিলতে। একসময় হাতখরচের টাকাটুকুও দেওয়া বন্ধ করে দিল। আমি পড়লাম অগাধ জলে। ফের শুরু করলাম কাজের খোঁজ। মনে হল, টাকা এনে দিতে পারলে যদি স্বামীর মন পাই। প্রথমে তো কাজই পাই না। তারপর যা কাজ পেতাম করতাম। পুরো টাকা ধরে দিতাম ধ্রুবকে। তাতেও মন গলল না স্বামীর।

অশান্তি বাড়ছে। ঝগড়া চরমে। রোজ ডিভোর্সের পেপার আনছি। ধ্রুব ক্ষমা চাইছে। আমি ভাবছি, আরেকবার চেষ্টা করতে ক্ষতি কী? এভাবে যখন নিজের কাছে নিজেই অসহ্য তখন ঠিক করলাম, নিজেকে শেষ করে দেব। একবার নয়, তিনবার।

প্রথমবার, ছেলে তখনও জন্মায়নি। প্রচুর ঘুমের ওষুধ খেয়েছিলাম। ১৯৯৭-এ ছেলে জন্মানোর পর আরও দু-বার। প্রতিবার ঈশ্বর আমায় ফিরিয়ে দিয়েছেন। মনে হয়, আমার যাওয়ার সময় হয়নি বলে।’

একটা সময় সংসার-মানুষের ওপর বীতশ্রদ্ধ হয়ে কলকাতা ছেড়ে মুম্বাইবাসী হন রূপা। ধ্রুব কিন্তু আকাশকে ছাড়েনি তার মায়ের কাছে। রূপাও টানা-হ্যাঁচড়া করেননি ছেলেকে নিয়ে। যাতে কচি মনে কোনো আঁচড় না লাগে। মায়ের কর্তব্যেও অবহেলা করেননি।

সেই বিচ্ছেদের পর একাধিক প্রেমে জড়িয়েছেন তিনি। তার লিভ টুগেদারের মুখরোচক খবরও ছড়িয়েছে বারবার। কিন্তু প্রেমিক বা স্বামী কারোর কাছেই আর সংসারের জন্য ফিরে আসেননি তিনি।

২০১৫ সালে তিনি রাজনীতিতে যোগ দেন। ভারতীয় জনতা পার্টি বা বিজেপির হয়ে ২০১৬ সালের বিধানসভা নির্বাচনে তিনি হেরে যান তৃণমূলপ্রার্থী লক্ষ্মীরতন শুক্লার কাছে। ওই বছরেই তিনি রাজ্যসভায় নভজ্যোত সিং সিধুর জায়গায় আসেন।

২৫ নভেম্বর ছিলো এই নেত্রী-অভিনেত্রীর জন্মদিন। তিনি এবার ৫২ বছরে পা রাখলেন।

অভিনেতা কালা আজিজকে নিয়ে ভুল তথ্য প্রকাশ

বিনোদন বাজার ॥ ২৩ নভেম্বর ৬৫ বছর বয়সে ইন্তেকাল করেন ঢাকাই ছবির অভিনেতা আজিজ। তিনি কালা আজিজ নামে পরিচিত।

মৃত্যু-পরবর্তী তার কর্মজীবন নিয়ে প্রকাশিত বিভিন্ন তথ্যের মধ্যে একটি তথ্য ছিল তিনি জাতীয় চলচ্চিত পুরস্কারপ্রাপ্ত অভিনেতা। মূলত তথ্যটি ভুল।

কালা আজিজ কখনও জাতীয় চলচ্চিত্র পুরস্কার পাননি। বিষয়টি নিশ্চিত করেছেন তার ছেলে সুফল। তবে তিনি বাংলাদেশ চলচ্চিত্র সাংবাদিক সমিতি (বাচসাস) পুরস্কার পেয়েছেন।

অভিনয়ের পাশাপাশি এফডিসির ল্যাবে চাকরি করতেন আজিজ। সিরাজগঞ্জের ভাট্টিয়ারিতে ১৯৫৪ সালের ১ জুলাই জন্ম নেয়া এ অভিনেতা ১৯৮৪ সালে কাজী হায়াৎ পরিচালিত ‘মনা পাগলা’ ছবিতে অভিনয়ের মধ্য দিয়ে অভিনয়ের সঙ্গে নিজেকে সম্পৃক্ত করেন। প্রায় তিনশো ছবিতে অভিনয় করেছেন এ অভিনেতা।

কাজী হায়াৎ পরিচালিত ‘ইতিহাস’ ছবিতে অভিনয়ের জন্য তিনি বাচসাস পুরস্কারে ভূষিত হন। সর্বশেষ তিনি শাকিব খানের সঙ্গেও শাহীন সুমনের একটি ছবিতে অভিনয় করেন।

এ প্রসঙ্গে শাকিব খান বলেন, ‘কালা আজিজ ভাইকে আমি ভীষণ শ্রদ্ধা করতাম। তার মৃত্যুতে খুব খারাপ লেগেছে। খুব নরম মনের মানুষ ছিলেন তিনি।’

‘রোনালদো চ্যাম্পিয়ন, তবে লড়াইটা ইউভেন্তুসের সঙ্গে’

ক্রীড়া প্রতিবেদক ॥ আবারও পুরোনো ‘শক্র’ ক্রিশ্চিয়ানো রোনালদোকে সামলানোর চ্যালেঞ্জ দিয়েগো সিমিওনের সামনে। তবে লড়াইটা তো কেবল একজনের সঙ্গে নয়। আতলেতিকো মাদ্রিদ কোচও জানিয়ে দিলেন, রোনালদো ও ইউভেন্তুসের চ্যালেঞ্জ সামলাতে প্রস্তুত তার দল। উয়েফা চ্যাম্পিয়ন্স লিগে গ্র“প পর্বের ম্যাচে বাংলাদেশ সময় মঙ্গলবার রাত ২টায় তুরিনে মুখোমুখি হবে দুই দল। এক সময় লা লিগায় রোনালদোকে আটকানোর ছক নিয়মিতই করেছেন সিমিওনে। গত মৌসুমে রিয়াল মাদ্রিদ ছেড়ে পর্তুগিজ তারকা যোগ দেন ইউভেন্তুসে। সময়ের পরিক্রমায় আবারও মুখোমুখি হচ্ছেন দুজন ইউরোপ সেরার লড়াইয়ে। ম্যাচের আগের দিন সংবাদ সম্মেলনে সময়ের অন্যতম সেরা ফুটবলারের প্রতি যতেষ্ট সমীহ দেখালেন সিমিওনে। তবে লড়াইটা যে কোনো একজনের সঙ্গে নয়, সেটিও মনে করিয়ে দিলেন আতলেতিকো কোচ। “(ক্রিশ্চিয়ানো রোনালদো) একজন চ্যাম্পিয়ন, এছাড়া কিছু বলতে পারি না সে নাম্বার ওয়ান, অসাধারণ একজন এবং সব সময় পার্থক্য গড়ে দেয়। তবে আমার মনে হয় না লড়াইটা রোনালদো বনাম আতলেতিকোর, আমরা এখানে এসেছি জুভেন্টাসের বিপক্ষে খেলতে।” ‘ডি’ গ্র“পে ৪ ম্যাচে দুই জয় ও একটি করে ড্র ও হারে ৭ পয়েন্ট আতলেতিকো মাদ্রিদের। তিন জয় ও এক ড্রয়ে ১০ পয়েন্ট নিয়ে আগেই শেষ ষোলো নিশ্চিত করেছে ইউভেন্তুস।

চলচ্চিত্রে অভিনয় করবেন নাসিরের সেই ‘গার্লফ্রেন্ড’ সুবাহ

বিনোদন বাজার ॥ জাতীয় দলের ক্রিকেটার নাসির হোসেনের গার্লফ্রেন্ড দাবি করে আলোচনায় আসা সেই হুমায়রা সুবাহ একটি চলচ্চিত্রে নাম লিখিয়েছেন।

ছবির নাম বসন্ত বিকেল। বিএফডিসিতে শনিবার সন্ধ্যায় জাঁকজমকভাবে অনুষ্ঠিত হয় সিনেমাটির মহরত।

সুবাহ আরও বলেন, ছোটবেলা থেকেই আমার নায়িকা হওয়ার স্বপ্ন ছিল। কিন্তু আমার আম্মু চাইতেন আমি যেন গান করি। আম্মুর ইচ্ছে অনুযায়ী চেষ্টা করছিলাম কণ্ঠশিল্পী হওয়ার। মোহাম্মদ আসলাম ভাই আমাকে তার সিনেমায় গান গাওয়ার সুযোগ দেন। পরে তিনি আমাকে লিড রোলে অভিনয় করতে বলেন। যেহেতু এটা আমার ইচ্ছে ছিল তাই রাজি হয়ে যাই।

বসন্ত বিকেল ছবিতে সুবাহর সঙ্গে অভিনয় করছেন শিপন মিত্র ও তানভীর তনু। ছবিটি প্রযোজনা করছেন শামসুজ্জামান রিমন। ৫ ডিসেম্বর থেকে সিনেমার দৃশ্যধারণ শুরু হবে বলে জানা গেছে।

অনুষ্ঠানের এক ফাঁকে ক্রিকেটার নাসির হোসেনের বিষয়ে জানতে চাইলে সুবাহ বলেন, প্রত্যেকটা মানুষের ব্যক্তিগত বিষয় থাকে। এটা আমার একান্ত ব্যক্তিগত বিষয়। আমাকে আজ ব্যক্তিগত বিষয়ে প্রশ্ন না করলেই ভালো হয়। আজ শুধু সিনেমা নিয়ে কথা বলতে চাই।

আটকে গেল দেবের ‘পাসওয়ার্ড’

বিনোদন বাজার ॥ বাংলাদেশের প্রেক্ষাগৃহে মুক্তি পাওয়ার কথা আছে ভারতের কলকাতা থেকে আমদানি করা দেবের চলচ্চিত্র ‘পাসওয়ার্ড’। তবে নামের কারণে সেন্সর বোর্ডে আটকে গেছে দেব অভিনীত পশ্চিমবঙ্গের ছবিটি।

এর আগে গত রোজার ঈদে মুক্তি পায় শাকিব খান প্রযোজিত ও অভিনীত চলচ্চিত্র ‘পাসওয়ার্ড’। একই নামকরণের কারণে ছবিটি মুক্তিতে বাধা দিয়েছে সেন্সর বোর্ড।

বিষয়টি নিশ্চিত করেছেন বোর্ডের ভাইস চেয়ারম্যান নিজামুল কবির। তিনি বলেন, গত রোজার ঈদে ‘পাসওয়ার্ড’ নামে শাকিব খানের একটি ছবি মুক্তি পায়। তাই বোর্ড সদস্যদের সিদ্ধান্ত, কাছাকাছি সময়ে একই নামে আরেকটি ছবির ছাড়পত্র দেয়া যুক্তিসঙ্গত হবে না।

তিনি বলেন, আমদানিকারকের কাছে ছবির নামের ব্যাখ্যা চাওয়া হয়েছে। ব্যাখ্যা পাওয়ার পর এ বিষয়ে চূড়ান্ত সিদ্ধান্ত নেয়া হবে।

কলকাতার ‘পাসওয়ার্ড’ ছবিটিতে অভিনয় করেছেন দেব ও রু´িণী মৈত্র। ছবিটির আমদানিকারক প্রতিষ্ঠান শাপলা মিডিয়া।

‘রাম মন্দির’ নিয়ে সিনেমা বানাচ্ছেন কঙ্গনা

বিনোদন বাজার ॥ বলিউড অভিনেত্রী কঙ্গনা রানাউত এবার অযোধ্যা এবং রাম মন্দির নিয়ে সিনেমা তৈরি করছেন। আগামী বছরের প্রথম থেকেই শুরু হবে কঙ্গনার সিনেমার শুটিং। সিনেমার নাম দেওয়া হয়েছে, ‘অপরাজিত অযোধ্যা’। কে ভি বিজেন্দ্র প্রসাদের হাত ধরেই তৈরি হচ্ছে অপরাজিত অযোধ্যার গল্প। প্রসঙ্গত বাহুবলি সিরিজের গল্পকারের হাত ধরেই তৈরি হচ্ছে অপরাজিত অযোধ্যার গল্প। তবে ওই সিনেমায় কাদের দিয়ে অভিনয় করানো হচ্ছে, সে বিষয়ে কিছু জানা যায়নি। মনিকর্ণিকার হাত ধরে বলিউডে প্রযোজনায় নামেন কঙ্গনা রানাউত। বক্স অফিসে মনিকর্ণিকা সেভাবে সাফল্য না পেলেও, কঙ্গনা যে প্রযোজক হিসেবে বলিউডে নিজের জায়গা পাকাপোক্ত করছেন, তা বেশ স্পষ্ট। এদিকে গত শনিবার মুক্তি পায় কঙ্গনা রানাউতের সিনেমা থালাইভি। এই সিনেমায় তামিলনাড়ুর প্রাক্তন মুখ্যমন্ত্রী জে জয়ললিতার ভূমিকায় অভিনয় করছেন কঙ্গনা। থালাইভি-তে বলিউড কুইনের প্রথম লুক সামনে আসার পরই জোর সমালোচনা শুরু হয়ে যায়। আম্মাকে অপমান করা হয়েছে বলে নেটিজেনরা জোর সমালোচনা শুরু করে দেন কঙ্গনার থালাইভির লুক নিয়ে।

লাইফ সাপোর্টে চিত্রগ্রাহক মাহফুজুর রহমান খান

বিনোদন বাজার ॥ চলচ্চিত্রের চিত্রগ্রহণের জন্য নয় বার জাতীয় চলচ্চিত্র পুরস্কারপ্রাপ্ত চিত্রগ্রাহক মাহফুজুর রহমান খান লাইফ সাপোর্টে। সোমবার (২৫ নভেম্বর) দিনগত রাত ১০টার দিকে তিনি অসুস্থ হয়ে পড়লে স্বজনরা তাকে রাজধানীর গ্রিন লাইফ হাসপাতালে নিয়ে আসেন। তার অবস্থা আশঙ্কাজনক বলে জানিয়েছেন চিকিৎসকরা।জাতীয় চলচ্চিত্র পুরস্কার ছাড়াও মাহফুজুর রহমান আটবার বাংলাদেশ চলচ্চিত্র সাংবাদিক সমিতি (বাচসাস) পুরস্কার এবং একবার বিশেষ বিভাগে মেরিল-প্রথম আলো পুরস্কার লাভ করেন। শ্রাবণ মেঘের দিন, ঘেটুপুত্র কমলা, আগুনের পরশমনিসহ অসংখ্য সিনেমার চলচ্চিত্র ধারণ করেন।

মাহফুজুর রহমান খান ১৯৪৯ সালের ১৯ মে পুরান ঢাকার হেকিম হাবিবুর রহমান রোডে এক বনেদী পরিবারে জন্মগ্রহণ করেন। তার বাবা মরহুম হাকিম ইরতিজা-উর-রহমান খান ছিলেন একজন ব্যবসায়ী। তার দাদা হাকিম হাবিবুর রহমান খানের নামানুসারেই রোডের নামকরণ করা হয়েছিল। তার চাচা ই আর খান (ইরতিফা-উর-রহমান খান) ১৯৬০-৮০ এর দশকের বাংলা চলচ্চিত্রের একজন খ্যাতনামা পরিচালক ও প্রযোজক ছিলেন। তাছাড়া প্রখ্যাত চিত্রপরিচালক সহোদর এহতেশাম ও মুস্তাফিজ তার ফুফাত ভাই।

রাজধানীর তৎকালীন ক্যান্টনমেন্ট পাবলিক স্কুল (বর্তমান ইস্পাহানী পাবলিক স্কুল অ্যান্ড কলেজ) থেকে এসএসসি পাস ও কায়েদে আজম কলেজ (বর্তমান শহীদ সোহরাওয়ার্দী কলেজ) থেকে ইন্টারমিডিয়েট পাস করেছিলেন।

স্কুলে পড়ার সময়েই মাহফুজুর রহমান চিত্রগ্রহণে আগ্রহী হয়ে ওঠেন। তার বাবার ক্যামেরায় ছবি তুলে তার চিত্রগ্রহণে হাতেখড়ি। চিত্রগ্রহণ শেখার জন্য তিনি প্রখ্যাত চিত্রপরিচালক জহির রায়হান নির্মাণাধীন ‘লেট দেয়ার বি লাইট’-এর সেটে গিয়েছিলেন। শুধু তাই নয়, রফিকুল বারী চৌধুরী ও আব্দুল লতিফ বাচ্চুর সেটে গিয়েও চিত্রগ্রহণের বিভিন্ন বিষয় শেখার চেষ্টা করেন।

পেশাদার চিত্রগ্রাহক হিসেবে মাহফুজুর রহমান ১৯৭২ সালে প্রথম চলচ্চিত্রে কাজ শুরু করেন।

দেশে ফিরেই ভাইরাল প্রিয়াঙ্কা!

বিনোদন বাজার ॥ বিশেষ কারণ ছাড়া এখন আর মুম্বাইতে আসা হয় না প্রিয়াঙ্কা চোপড়ার। ‘দ্য স্কাই ইস পিঙ্ক’ সিনেমা মুক্তির সময় দেশের আসেন তিনি। এরপর আবারো বিদেশে পাড়ি দেন। লস অ্যাঞ্জেলসে গিয়ে স্বামী নিক এবং জোনাস পরিবারের সঙ্গে সময় কাটিয়ে সম্প্রতি ফের মুম্বাইতে ফিরে আসেন প্রিয়াঙ্কা চোপড়া। মুম্বাইতে ফেরার পর শুক্রবার বন্ধুদের সঙ্গে রাতভর পার্টি করেন তিনি।

বলিউডের সেই পার্টিতে প্রিয়াঙ্কার সঙ্গে হাজির হন আয়ুষ্মান খুরানা, তাহিরা কাশ্যপ, বাণী কাপুর, ক্যাটরিনা কাইফরা। পার্টিতে নাচতে দেখা যায় প্রিয়াঙ্কা চোপড়া ও বাণী কাপুরকে। হৃত্বিক রোশন, টাইগার শ্রফ এবং বাণী কাপুরের সিনেমা ওয়ারের সুরে যখন প্রিয়াঙ্কা নাচতে শুরু করেন তখন তাকে সঙ্গ দিতে শুরু করেন বাণী কাপুর। ইনস্টাগ্রাম হ্যান্ডেলে প্রিয়াঙ্কা ও বাণীর নাচের ভিডিও শেয়ার করে পিগির ফ্যান ক্লাব।

দ্য স্কাই ইস পিঙ্ক-এর পর প্রিয়াঙ্কা চোপড়ার হাতে অন্য কোন সিনেমা রয়েছে, সে বিষয়ে স্পষ্ট করে কিছু জানা যায়নি।

আমি ট্রাম্পের বৌমা : রাখি সায়ন্ত

বিনোদন বাজার ॥ নিজেকে মার্কিন প্রেসিডেন্ট ডোনাল্ড ট্রাম্পের বৌমা বলে দাবি করলেন বলিউডের ‘ড্রামা কুইন’ রাখি সায়ন্ত।

আনন্দবাজারের এক প্রতিবেদনে বলা হয়েছে, কয়েক দিন আগে সামাজিকমাধ্যমে রাখির বিয়ের বেশ কিছু ছবি ভাইরাল হয়।

এ বিষয়ে গণমাধ্যমকর্মীরা জানতে চাইলে তিনি জানান, না, বিয়ে তিনি করেননি। ফটোশুটের জন্য ও রকম সেজেছিলেন। কিন্তু পরে আবার নিজেই জানান, তিনি বিয়ে করেছেন। তার স্বামী প্রবাসী, মার্কিন যুক্তরাষ্ট্রে থাকেন।

নিজে সিঁদুর-মঙ্গলসূত্রে সেজে ইনস্টাগ্রামে ছবি দিলেও এখনও পর্যন্ত তার স্বামীকে জনসমক্ষে নিয়ে আসেননি রাখি। তবে তিনি যে নতুন বিবাহিত জীবনে বেশ খুশি, সে কথা সবসময়ই বিভিন্ন লাইভে বলেছেন।

সম্প্রতি রাখির ভাইয়ের সিনেমা মুক্তির অনুষ্ঠানে তাকে জিজ্ঞাসা করা হয়, ‘বিয়ে করলেন, অথচ রিসেপশন পার্টি দেবেন না?’

জবাবে রাখির উত্তর, ‘চারিদিকে এত মূল্যবৃদ্ধি। আর তা ছাড়া আমার রিসেপশন তো প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদি আয়োজন করবেন।’ শুধু তাই নয়, যেহেতু তার স্বামী প্রবাসী ভারতীয় তাই রাখির দাবি, সেই সুবাদে ট্রাম্প নাকি এখন তার শ্বশুরমশাই।

রাখির ওই মন্তব্যে ইতিমধ্যেই সোশ্যাল মিডিয়ায় হাসির রোল পড়েছে। ট্রোলের শিকারও হয়েছেন তিনি।

এন্ড্রু কিশোরের চিকিতসা ব্যয় জোগাতে  অনলাইনে চলছে ফান্ডিং

বিনোদন বাজার ॥ ক্যানসার আক্রান্ত দেশসেরা সঙ্গীতশিল্পী এন্ড্রু কিশোর সিঙ্গাপুর জেনারেল হাসপাতালে চিকিৎসাধীন। তাকে আরও অন্তত আড়াই থেকে ৩ মাস চিকিৎসা দিতে হবে। এর জন্য প্রয়োজন দুই কোটিরও বেশি টাকা। এই ব্যয় সামাল দেয়া তার পরিবারের একার পক্ষে সম্ভব নয়। এ কারণে অনলাইনে ফান্ডিংয়ের আবেদন করেছেন তার স্ত্রী লিপিকা এন্ড্রু।

‘গো ফান্ড মি’ নামের ওয়েবসাইটে এটি করা হয়েছে। সেখানে কিশোরপতœী জানান, এন্ড্রু কিশোরের শরীরে ক্যানসারের অস্তিত্ব পাওয়া গেছে। অত্যন্ত ব্যয়বহুল এবং দীর্ঘমেয়াদি এ চিকিৎসার জন্য পূর্ব প্রস্তুতি না নিয়ে সিঙ্গাপুরে যান তারা। সেখানে বায়োপসিতে ক্যানসার ধরা পড়লে ডাক্তারদের পরামর্শে দ্রুত তার চিকিৎসা শুরু করতে হয়। বর্তমানে তিনি সিঙ্গাপুর জেনারেল হাসপাতালে ডাক্তার লিমসুন থাইয়ের তত্ত্বাবধানে চিকিৎসাধীন রয়েছেন।

জানা গেছে, হাসপাতালের চিকিৎসা বোর্ডের কাগজপত্র নিয়ে সিঙ্গাপুর প্রবাসী বাংলাদেশিরা এই অনলাইন ফান্ডিংটির পেজ চালু করেন। এন্ড্রু কিশোরও জানান, একপ্রকার বাধ্য হয়ে এই ফান্ড খুলতে হয়েছে।

জানা গেছে, এন্ড্রু কিশোরকে যে কেমোথেরাপি দেয়া হচ্ছে তার প্রতিটির মূল্য প্রায় ৯ লাখ টাকা। এরইমধ্যে ১২ টি ক্যামো তাকে দেয়া হয়েছে। দ্বিতীয় সাইকেলে আরও ১২ টি ক্যামো দিতে হবে তাকে। এরই মধ্যে গুণী এই শিল্পীর চিকিৎসায় তার পরিবার কোটি টাকারও বেশি খরচ হয়ে গেছে। প্রয়োজন আরও অনেক টাকার।

সিঙ্গাপুরে যাওয়ার আগে গত ৮ সেপ্টেম্বর প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা গণভবনে এন্ড্রু কিশোরকে আমন্ত্রণ জানান। এ সময় তিনি এন্ড্রু কিশোরের শারীরিক সমস্যার খোঁজ খবর নেন এবং তার চিকিৎসার জন্য ১০ লাখ টাকার চেক তুলে দেন। এছাড়া একটি বেসরকারি চ্যানেলের কর্তৃপক্ষ তার চিকিৎসায় সহায়তায় আরও ১০ লাখ টাকা দিয়েছে।

এন্ড্রু কিশোরের পরিবারের ঘনিষ্ট ও তার ভক্ত সংগীতশিল্পী মোমিন বিশ্বাস গুণী এই শিল্পীর সঙ্গে কথা বলে ফেসবুকে একটি স্ট্যাটাস দিয়েছেন। এতে তিনি লিখেছেন- ‘১১ সেপ্টেম্বর থেকে ১৭ সেপ্টেম্বর পর্যন্ত বিভিন্ন পরীক্ষা-নিরীক্ষা শেষে ১৮ সেপ্টেম্বর এন্ড্রুদার বায়োপসি রিপোর্ট পাওয়া যায়। রিপোর্টে তার শরীরে ক্যান্সারের অস্তিত্ব মেলে। অত্যন্ত ব্যয়বহুল ও দীর্ঘ সময় এই চিকিৎসার তেমন কোনো পূর্ব প্রস্তুতি না নিয়ে গেলেও ডাক্তারদের পরামর্শে দ্রুত তার চিকিৎসা শুরু হয়। এ পর্যন্ত তার তিনটি সাইকেলে ১২টি কেমোথেরাপি সম্পন্ন হয়েছে।’

তিনি লেখেন, ‘২৬ নভেম্বর থেকে এন্ড্রু কিশোরের কেমোথেরাপির পরবর্তী সাইকেল শুরু হবে এবং তিনটি সাইকেলে আরও ১২টি কেমোথেরাপি সম্পন্ন করা হবে বলে সেখানকার ডাক্তার জানিয়েছেন। বর্তমানে তার শরীর অনেকটা ভালো। যথাযথভাবে চিকিৎসা চলছে বলে এন্ড্রুদা অবগত করেছেন। তার এই চিকিৎসা আরও প্রায় আড়াই থেকে তিন মাস চলবে বলে ডাক্তার জানিয়েছেন।’

এন্ড্রু কিশোর ভক্ত এই সংগীতশিল্পী আরও লেখেন, এন্ড্রুদাকে ক্যারিয়ারের শুরুতেই বলিউডে ক্যারিয়ার গড়ার প্রস্তাব দিয়েছিলেন প্রখ্যাত সংগীত পরিচালক আরডি বর্মণ। তার সেই প্রস্তাব ফিরিয়ে দিয়ে জন্মভূমিতেই গত ৪০ বছর ধরে সব মিলিয়ে প্রায় ১৫ হাজারের বেশি গান গেয়েছেন তিনি। পেয়েছেন আটবার জাতীয় চলচ্চিত্র পুরস্কার। একজন এন্ড্রু কিশোর যুগে যুগে জন্মান না, কয়েক শতকে হয়তো একবার জন্ম নেন। আসুন তার এই দুঃসময়ে পাশে থেকে মানসিক সমর্থন দিই এবং সর্বোপরি তার সুস্থতার জন্য দোয়া করি।’

উল্লেখ্য, ক্যান্সার সন্দেহে ৯ সেপ্টেম্বর উন্নত চিকিৎসার জন্য সিঙ্গাপুরে যান এন্ড্রু কিশোর। সেখানে বায়োপসি রিপোর্সে তার ক্যান্সার ধরা পড়ে। পরে ক্যামোথেরাপি দেয়া শুরু হয়। জনপ্রিয় এই শিল্পীর চিকিৎসায় প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা আর্থিক সহায়তা করেছেন।

সংগীত ব্যক্তিত্ব মোবারক হোসেন খান আর নেই

বিনোদন বাজার ॥ প্রখ্যাত সংগীত ব্যক্তিত্ব মোবারক হোসেন খান আর নেই। রোববার (২৪ নভেম্বর) সকালে ঘুমের ভেতর মারা গেছেন তিনি। খবরটি নিশ্চিত করেছেন তার মেয়ে অধ্যাপক রিনাত ফৌজিয়া খান। তিনি জানান, দীর্ঘদিন ধরে অসুস্থ ছিলেন তার বাবা। সঙ্গে ছিল বার্ধক্যজনিত নানা সমস্যা। বর্তমানে তার মরদেহ বারডেমের হিমঘরে রাখা হয়েছে। ছেলে যুক্তরাষ্ট্র থেকে ফেরার পর জানাজা ও দাফনের সিদ্ধান্ত নেয়া হবে বলে জানা গেছে।

মোবারক হোসেন খান ১৯৩৮ সালের ২৭ ফেব্রুয়ারি ব্রাহ্মণবাড়িয়ার নবীনগর উপজেলার শিবপুর গ্রামের সংগীত পরিবারে জন্মগ্রহণ করেন। তার বাবা ওস্তাদ আয়েত আলী খাঁ প্রখ্যাত শাস্ত্রীয় সংগীতশিল্পী। মা উমার উন-নেসা। তার চাচা ওস্তাদ আলাউদ্দিন খাঁ উপমহাদেশের প্রখ্যাত সঙ্গীতজ্ঞ। ছয় ভাইবোনের মধ্যে মোবারক হোসেন খান সবার ছোট। তার বড় তিন বোন আম্বিয়া, কোহিনূর ও রাজিয়া এবং বড় দুই ভাই প্রখ্যাত সঙ্গীতজ্ঞ আবেদ হোসেন খান ও বাহাদুর হোসেন খান। পারিবারিক ঐতিহ্য অনুযায়ী বড় দুই ভাই সঙ্গীতে মগ্ন ছিলেন। তাই বাবা চেয়েছিলেন, মোবারক হোসেন খান যেন সঙ্গীতের পাশাপাশি পড়াশোনা করেন। এ জন্য সংগীতে দীক্ষা গ্রহণের পূর্বে তিনি মাইনর স্কুলে প্রথম থেকে ষষ্ঠ শ্রেণি পর্যন্ত পাঠ গ্রহণ করেন।

এছাড়া দেশ বিভাগের পূর্ব থেকে তার বাবার গান শেখানোর উদ্দেশ্যে কুমিল্লা জেলায় যাতায়াত ছিল এবং ১৯৪৭ সালে দেশ বিভাগের পর তারা সপরিবারে সেখানে চলে যান। মোবারক হোসেন খান কুমিল্লা জেলা স্কুলে সপ্তম শ্রেণিতে ভর্তি হন এবং সেখান থেকে ১৯৫২ সালে মেট্রিক পাস করেন। পরে কুমিল্লা ভিক্টোরিয়া কলেজ থেকে বিএ এবং ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয় থেকে ইতিহাস বিষয়ে এমএ ডিগ্রি লাভ করেন। ১৯৬২ সালের ২০ অক্টোবর বাংলাদেশ বেতারের অনুষ্ঠান প্রযোজক হিসেবে মোবারক হোসেন খানের কর্মজীবন শুরু হয়। পরে তিনি বাংলাদেশ বেতারের পরিচালক হিসেবে ৩০ বছর কর্মরত ছিলেন।

এ সময় তিনি কয়েকটি বই লিখেছেন। লেখালেখি সূত্রে পরিচয় হয় কবি আল মাহমুদের সঙ্গে। আল মাহমুদ ছিলেন তখন বাংলাদেশ শিল্পকলা একাডেমির সহকারী পরিচালক। তার মাধ্যমে ১৯৮০ সালে বাংলাদেশ শিল্পকলা একাডেমি থেকে প্রকাশ করেন তাঁর প্রথম সংগীতবিষয়ক বই ‘সংগীত প্রসঙ্গ’। বিভিন্ন পত্রিকায় তার সংগীতবিষয়ক লেখা নিয়ে বাংলা একাডেমি থেকে প্রকাশিত হয় তার দ্বিতীয় বই ‘বাদ্যযন্ত্র প্রসঙ্গ’। এরপর তিনি রচনা করেন ‘সংগীত মালিকা’। এই বইটিও প্রকাশ করে বাংলা একাডেমি। পরে তিনি সংগীত ও শিশুবিষয়ক ৫০টি গ্রন্থ রচনা করেন।

তিনি ১৯৯২ সাল থেকে ১৯৯৬ সাল পর্যন্ত বাংলাদেশ শিল্পকলা একাডেমির মহাপরিচালকের দায়িত্ব পালন করেন। মোবারক হোসেন খান জনপ্রিয় কণ্ঠশিল্পী সাবিনা ইয়াসমীনের বড় বোন সংগীতশিল্পী ফৌজিয়া ইয়াসমীনকে বিয়ে করেন। তাদের তিন সন্তানের মধ্যে কন্যা রিনাত ফৌজিয়া সংগীতশিল্পী আর দুই ছেলে তারিফ হায়াত খান ও তানিম হায়াত খান।

তিনি একুশে পদক পেয়েছেন ১৯৮৬ সালে। এ ছাড়া পেয়েছেন স্বাধীনতা দিবস পুরস্কার (১৯৯৪) ও বাংলা একাডেমি পুরস্কার (২০০২)।

নৃত্যে বিশ্ব দরবারে রিয়াদ

বিনোদন বাজার ॥ ফ্রান্সের প্যারিসে ডিসেম্বরের শুরুতে অনুষ্ঠিত হতে যাচ্ছে, ২৩ তম জাতিসংঘের ইন্টারন্যাশনাল ড্যান্স কাউন্সিলের সভা। ইউনেস্কোর আন্তর্জাতিক নৃত্য বিষয়ক এ সভায় বাংলাদেশের হয়ে অংশগ্রহণ করতে যাচ্ছেন নৃত্যশিল্পী শাহ আলম রিয়াদ।

আগামী ১ ডিসেম্বর থেকে ৪ ডিসেম্বর ২০১৯ পর্যন্ত জাতিসংঘের ইন্টারন্যাশনাল ড্যান্স কাউন্সিল সভা অনুষ্ঠিত হবে।

সকল মঞ্চে সুনাম অর্জন করছে রিয়াদ। এবার বিশ্বের দরবারে নিজেকে তুলে ধরতে অংশগ্রহণ করতে যাচ্ছেন এই ড্যান্স কাউন্সিল সভায়। এছাড়াও রিয়াদ গত জুলাই মাসের ১৫ থেকে ২০ তারিখ ইউরোপের অন্যতম সুন্দর দেশ চেক রিপাবলিকে অনুষ্ঠিত “নিউ প্যারাগুয়ে ডান্স কম্পিটিশন”-এ অংশগ্রহণ করে ২০টি দেশের নৃত্য শিল্পীদের সাথে প্রতিযোগিতা করে লোক নৃত্যে ১ম স্থান অর্জন করে এবং একই বছরের আগস্ট মাসে যুক্তরাজ্যে “স্টারস অব আলবেন” নৃত্য প্রতিযোগিতায় অংশ গ্রহণ কওে ১ম স্থান অর্জন করে, লন্ডনে অনুষ্ঠিত এই প্রতিযোগিতায় আরও অংশগ্রহণ করে প্রায় ১৬টি দেশ, যার মধ্যে উল্লেখযোগ্য-ইংল্যান্ড, আমেরিকা, ইতালী, ফ্রান্স, ইউক্রেন, জর্জিয়া, গ্রীস, কাজাকিস্তান, তুর্কি, আরমেনিয়া, পোল্যান্ড, রাশিয়া এবং ইন্ডিয়া।

২০২০ সালের ফেব্রুয়ারী মাসে অনুষ্ঠিত হবে “স্টারস অব আলবেন” ইন্টারন্যাশনাল নৃত্য প্রতিযোগিতার ৭ম আসর আর এবারের প্রতিযোগিতার শাহ আলম রিয়াদ নৃত্যের বিচারক হিসেবে মনোনীত হয়েছে।

এছাড়াও আগামী ডিসেম্বর মাসের ২৪ থেকে ২৬ তারিখ ইন্ডিয়ায় অনুষ্ঠিত হতে যাওয়া ইন্টারন্যাশনাল ড্যান্স ফেস্টিভ্যাল ও প্রতিযোগিতায় বাংলাদেশ বুলবুল ললিতকলা একাডেমি বাফা’র ৫০ সদস্যেও একটি সংস্কৃতি প্রতিনিধি দল অংশগ্রহণ করবে যে সংস্কৃতি দলের নেতৃত্ব দেবেন শাহ আলম রিয়াদ।

শাহ আলম রিয়াদ এর আগেও প্রায় ৪০টি দেশে নৃত্য পরিবেশন করে বিভিন্ন পুরষ্কার পেয়েছেন যার মধ্যে উল্লেখযোগ্য দেশ হচ্ছে- আমেরিকা, ইংল্যান্ড, ফ্রান্স, ইতালি, জার্মানি, পোল্যান্ড, স্পেন, হাঙ্গেরী, পর্তুগাল, সুইজারল্যান্ড, জাপান, দক্ষিণ কোরিয়া, তুর্কি, মালয়েশিয়া, সিঙ্গাপুর, থাইল্যান্ড, ভিয়েতনাম, চীন, ইন্ডিয়া ইত্যাদি।

শাহ আলম রিয়াদ বর্তমানে বাংলাদেশ শিশু একাডেমি ঢাকা কেন্দ্রীয় কার্যালয়ে নৃত্য প্রশিক্ষক হিসেবে কর্মরত আছেন এবং বাংলাদেশ বুলবুল ললিতকলা একাডেমি বাফা’র ভাইস প্রিন্সিপাল ও ঢাকা দক্ষিণ সিটি কর্পোরেশন পরিচালিত সংগীত শিক্ষা কেন্দ্রের নৃত্য শিক্ষক এবং বাংলাদেশ টেলিভিশনের একজন নিয়মিত নৃত্যশিল্পী ও নৃত্য পরিচালক।

ইন্সটাগ্রাম থেকে ১৩০০ পর্ন তারকার অ্যাকাউন্ট ডিলিট

বিনোদন বাজার ॥ জনপ্রিয় সোশাল মিডিয়া ইন্সটাগ্রাম থেকে এবছর শত শত পর্ন স্টার ও যৌন কর্মীর অ্যাকাউন্ট ডিলিট করে দেওয়া হয়েছে।

ইন্সটাগ্রামের মালিক ফেসবুকের একজন মুখপাত্র বিবিসিকে বলেছেন, “এখানে নানা ধরনের লোকেরা আছেন। সেকারণে আমাদেরকে নগ্নতা ও যৌনতার বিষয়ে কিছু নিয়ম কানুন মেনে চলতে হয়, যাতে করে সবাই এটা দেখতে পারে, বিশেষ করে তরুণ ছেলেমেয়েদের কাছে।

“কেউ রিপোর্ট করলেই হয় না, সেটা যদি নিয়ম কানুন ভঙ্গ করে থাকে তখনই ব্যবস্থা নেওয়া হয়। তবে সেক্ষেত্রে আপিল করারও সুযোগ দেওয়া হয়েছে। আর তখন যদি দেখি যে ভুল করে কোন অ্যাকাউন্ট ডিলিট করে ফেলা হয়েছে তখন তো সেটা আবার ফিরিয়ে দেওয়া হয়।”

পর্ন তারকাদের সমিতি অ্যাডাল্ট পারফরমার্স অ্যাক্টর্স গিল্ডের প্রেসিডেন্ট এলানা ইভান্স বলছেন, শ্যারন স্টোন এবং অন্যান্য তারকারা যেভাবে তাদের ভেরিফায়েড পেজ চালাতে পারেন, আমাদেরও সেভাবে ইন্সটাগ্রাম চালাতে পারার কথা। কিন্তু বাস্তবতা হচ্ছে আমাদের অ্যাকাউন্ট ডিলিট করে দেওয়া হচ্ছে।”

মিস ইভান্সের গ্রুপটি এরকম ১,৩০০ জনেরও বেশি পর্ন তারকার একটি তালিকা তৈরি করেছে যাদের অ্যাকাউন্ট ইন্সটাগ্রামের মডারেটর ডিলিট করে দিয়েছে।

বলা হচ্ছে, নগ্ন চিত্র কিম্বা যৌনতার কোন ছবি না দেওয়া সত্ত্বেও এই সোশাল মিডিয়াটির কমিউনিটি স্ট্যান্ডার্ড বা রীতি নীতি ভঙ্গ করায় এসব অ্যাকাউন্ট মুছে দেয়া হয়েছে।

“আমাদের প্রতি এই বৈষম্যের কারণ হচ্ছে জীবিকার জন্যে আমরা যা করছি সেটা তাদের পছন্দ নয়,” বলেন মিস ইভান্স।

এবিষয়ে ইন্সটাগ্রাম কর্তৃপক্ষের সাথে গত জুন মাসে তাদের বৈঠকও হয়েছে। সেই আলোচনা ফলপ্রসূ হয়নি এবং পর্ন তারকাদের অ্যাকাউন্ট ডিলিট অব্যাহত রয়েছে।

গত বছরের শেষের দিকে অ্যাডাল্ট পারফর্মাররা অভিযোগ করেছিলেন, কোন একজন ব্যক্তি বা এক দল ব্যক্তি মিলে তাদের অ্যাকাউন্টের বিরুদ্ধে প্রচারণা চালাচ্ছে। তাদের পরিষ্কার উদ্দেশ্য ছিল এসব অ্যাকাউন্ট ডিলিট করানো।

তারা দাবি করেন যে এর পর থেকে তাদেরকে বিভিন্ন রকমের বার্তা দিয়ে হয়রানি করা হতো, ভয়-ভীতি দেখানো হতো।

“যখন আপনি তিল তিল করে একটি অ্যাকাউন্ট গড়ে তোলেন এবং সেখানে তিন লাখের বেশি মানুষ আপনাকে অনুসরণ করে, এবং তার পরে ওই অ্যাকাউন্ট ডিলিট করে দেওয়া হয় তখন মনে হবে যে আপনি হেরে গেছেন,” বলেন তিনি।

“আরো বেশি হতাশার যখন সব নিয়ম কানুন মেনে চলার পরেও অ্যাকাউন্ট ডিলিট করে দেওয়া হয়।”

মিস ব্যাঙ্কস বলছেন, সোশাল মিডিয়া থেকে অ্যাডাল্ট পারফর্মারদের অ্যাকাউন্ট ডিলিট করে দিয়ে তাদেরকে আসলে বাজার থেকে সরিয়ে দেওয়ার চেষ্টা চালানো হচ্ছে।

“লোকজন যে এসব অ্যাকাউন্টের নামে রিপোর্ট করছে তারা কি বুঝতে পারছে না এর ফলে আমাদের রোজগারে ক্ষতি হচ্ছে! নাকি তারা আমাদের জীবনের কথা চিন্তাই করে না? তারা মনে করে আমাদের এই পেশাটাই থাকা উচিত না।”

প্রযুক্তির উন্নতির কারণে পর্নোগ্রাফি ইন্ডাস্ট্রিরও আমূল পরিবর্তন ঘটেছে। এর ফলে নতুন নতুন মাধ্যম চালু হয়েছে এবং পর্ন তারকা ও যৌন কর্মীরা এখন নিজেই স্বাধীনভাবে এই কাজটা করতে পারেন।

ওয়েবক্যাম সাইট, সাবস্ক্রিপশন সার্ভিস ও বিভিন্ন ভিডিও প্ল্যাটফর্মের মাধ্যমে তারা অর্থ রোজগার করতে পারেন।

বেশিরভাগ পর্ন তারকাই তাদের এসব ভিডিওর প্রচারণা ও বিজ্ঞাপনের জন্য ইন্সটাগ্রামের মতো সোশাল মিডিয়া ব্যবহার করে থাকেন। তাই সেখানে অ্যাকাউন্ট বন্ধ হয়ে গেলে তারা বড় একটা বাজার হারিয়ে ফেলেন।

তাদের অভিযোগ মূলধারার সেলিব্রেটিরা তাদের চাইতেও অনেক বেশি খোলামেলা ছবি পোস্ট করে থাকেন। কিন্তু তাদের ওপর কোন ধরনের নিষেধাজ্ঞা আরোপ করা হয় না।

ফেসবুকের সবশেষ কমিউনিটি গাইডলাইন অনুসারে সেখানে কোন ব্যবহারকারী নগ্ন ছবি চাইতে ও দিতে পারে না, যৌনতা সম্পর্কিত কনটেন্টও ব্যবহার করতে পারে না।