লকডাউনের মাঝেই স্ত্রীকে নিয়ে হাসপাতালে ছুটলেন অক্ষয়!

বিনোদন বাজার ॥ গোটা দেশে লকডাউন। গাড়ির চালকও ছুটিতে। এই পরিস্থিতিতে নিজেই গাড়ি চালিয়ে স্ত্রী টুইঙ্কল খান্নাকে নিয়ে হাসপাতালে ছুটলেন অক্ষয় কুমার। সোশ্যাল মিডিয়ায় উঠে আসা এমনই একটি ভিডিও ঘিরে উদ্বিগ্ন ভক্তরা। দেশজুড়ে করোনার প্রকোপ যেভাবে বাড়ছ তাতে কেউ হাসপাতালে যাচ্ছে শুনলে চিন্তা হয় বৈকি। তবে তাঁর ঠিক কী হয়েছে তা ভিডিওতে খোলসা করেছেন টুইঙ্কল নিজেই। পা ভেঙে গিয়েছে প্রাক্তন অভিনেত্রী, লেখিকা তথা অক্ষয়পতœী টুইঙ্কল খান্নার।

ভিডিওতে টুইঙ্কেল বলেছেন, ‘রবিবার সকালে রাস্তা এক্কেবারেই ফাঁকা। তার উপর লকডাউনও রয়েছে। আমার গাড়ির চালক হল আমার স্বামী অক্ষয়। ও নিজেই গাড়ি চালিয়ে নিয়ে যাচ্ছে। চাঁদনিচকের হাসপাতাল থেকে ফিরছি। না আমার করোনা হয়নি। পা ভেঙেছে।’

প্রসঙ্গত, দেশজুড়ে চলা করোনা পরিস্থিতির মোকাবিলায় প্রধানমন্ত্রীর ত্রাণ তহবিলে ২৫ কোটি টাকা দিয়েছেন অক্ষয় কুমার। এই টাকা তিনি তার সঞ্চয় থেকেই দিয়েছেন বলে জানিয়েছেন আক্কি। এদিকে স্বামী অক্ষয়ের এমন পদক্ষেপে তিনি গর্ব বোধ করছেন বলেই টুইট করেছেন টুইঙ্কল।

চতুর্থবারেও করোনা পজিটিভ, তবুও কণিকা কাপুরের অস্বীকার!

বিনোদন বাজার ॥ কণিকা কাপুর নিজেই দাবি করেছেন তিনি করোনা আক্রান্ত নন। অথচ এখন পর্যন্ত ৪ বার পরীক্ষা করে ফল পজিটিভ পাওয়া গেছে। তাকে নিয়েই সারা ভারতজুড়ে এখন হইচই চলছে। অনেকে ধারণা করছেন, প্রায় ৩৫০ মানুষকে হয়তো তিনি সংক্রামিত করে ফেলেছেন। তিনি ব্রিটেনের যুবরাজ চার্লসের সঙ্গেও দেখা করেছিলেন লন্ডনে থাকার সময়। তার করোনা ভাইরাস ধরা পড়েছেই, বাদ যাননি যুবরাজ চার্লসও। এরইমধ্যে তিনি আবার আরেক কা- ঘটিয়েছেন।

সম্প্রতি ইনস্টাগ্রাম থেকে বেশকিছু পোস্ট মুছে ফেলার জন্য তিনি আবারও আলোচনায় এসেছেন। তবে এ প্রসঙ্গে কণিকা একটি সাক্ষাৎকারে বলেছেনও। তার অকপটে কথা, ‘আমাকে নিয়ে ট্রল করা হচ্ছে, যা অনৈতিক।’

সম্প্রতি ব্রিটেনের রাজা প্রিন্স চার্লস করোনা ভাইরাসে আক্রান্ত হয়েছেন। এ ঘটনার পর কণিকা কাপুরকে নিয়ে সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে আরও বেশি ট্রল হতে থাকে। ২০১৫ সাল থেকে প্রিন্সের সঙ্গে কণিকার বেশকিছু ছবি শেয়ার করে তিনিই প্রিন্সের মাঝে ভাইরাসটি ছড়িয়েছেন বলে দাবি করা হয় এবং এরপরই যুক্তরাজ্য থেকে ফিরে আসার পরের সব পোস্ট কণিকা ডিলিট করে ফেলেন। এ ঘটনায় তিনি আবারও সংবাদের শিরোনামে চলে এসেছেন।

কিছুদিন আগে সোনম কাপুর সোশ্যাল মিডিয়ায় একটি পোস্ট দিয়েছিলেন। সেখানে কণিকার সমর্থনে তিনি বলেছিলেন, ‘কণিকা যখন লন্ডন থেকে ফিরছেন তখন ভারতে মানুষ হোলি খেলছে।’ কিন্তু কণিকাকে সমর্থন করায় নেটিজেনরা বিস্তর ক্ষুব্ধ হন সোনমের ওপর।

করোনাভাইরাসে প্রাণ হারালেন মার্কিন গায়ক জো ডিফি

বিনোদন বাজার ॥ করোনাভাইরাসে আক্রান্ত হয়ে প্রাণ হারালেন মার্কিন দেশাত্মবোধক গানের শিল্পী জো ডিফি। মৃত্যুকালে তার বয়স হয়েছিল ৬১।

রোববার চিকিসাধীন অবস্থায় এ জনপ্রিয় গায়কের মৃত্যু হয়। কিছুদিন আগে তার শরীরে ধরা পড়ে প্রাণঘাতী ভাইরাস কোভিড-১৯। খবর সিএনএনের।

বিশ্বে মহামারী আকারে ছড়িয়ে পড়া এ ভাইরাসের সঙ্গে লড়াই করে ২৯ মার্চ মারা যান জো।

জো ডিফি গত শুক্রবার নিজেই ঘোষণা করেছিলেন তিনি করোনায় আক্রান্ত। আর তার পরেই তার অবস্থা আরও সঙ্কটজনক হতে থাকে।

অবশেষ রোববার মৃত্যু হয় এই জনপ্রিয় মার্কিন কান্ট্রি সিঙ্গারের। ডিফির জনসংযোগ কর্মকর্তাই তার মৃত্যুর খবর ঘোষণা করেন।

জন্মসূত্রে ওকলাহোমার বাসিন্দা জো ডিফি ২৫ বছর ধরে ওলে ওপরির সদস্য ছিলেন।

তার জনপ্রিয় গানগুলির মধ্যে রয়েছে- হংকি টংক অ্যাটিটিউড, প্রপ মি আপ বিসাইড দ্য জিউকবক্স, বিগার দ্যান দ্য় বিটলস, ইফ দ্য় ডেভিল ডান্সড।

এর মধ্যে থার্ড রক ফ্রম দ্য সান ও হংকি টংক অ্যাটিটিউড খুবই জনপ্রিয়।

জাদুকরী ছবিতে তাপমাত্রা বাড়িয়েছে কর্টনি কারদাশিয়ান!

বিনোদন বাজার ॥ আমেরিকান টিভি ব্যক্তিত্ব কর্টনি কার্দাশিয়ান তার বোন কিম এবং খোলোয়ের মতোই মাতানো ছবিগুলির জন্য খ্যাত। তিনি নিজের ফটোশুট দিয়ে ইন্টারনেটে ভার্চুয়াল ঝড় তৈরি করেছেন।

মডেল কর্টনি কার্দাশিয়ান তার ভাইবোন কিম এবং খোলোয়ের মতোই তার মনমুগ্ধকর ফটোশুট সৌজন্যে সোশ্যাল মিডিয়ায় খুব জনপ্রিয়। ক্যালিফোর্নিয়ার লস অ্যাঞ্জেলেসে জন্মগ্রহণকারী কোর্টনি টিভি সিরিজ ‘ফিলিটি রিচ: ক্যাটাল ড্রাইভ’ নিয়ে রিয়েলিটি টিভির বিশ্বে পরিচিত মুখ হয়ে ওঠেন।

২০০৭ সালের ফেব্রুয়ারিতে তাঁর বোন কিম এবং প্রাক্তন প্রেমিক রে জেয়ের তৈরি একটি যৌন টেপ ফাঁস হওয়ার পরে তিনি শীর্ষস্থানীয় হয়েছিলেন। ডিসেম্বর ২০১৬ থেকে ২৪ বছর বয়সী মডেল ইউনস বেনডিজিমার সাথে ডেটিং করছেন কর্টনি কার্দাশিয়ান, সোশ্যাল মিডিয়ায় তাদের রোমান্টিক ছবি দিয়ে ভক্তদের বিনোদন দিয়ে চলেছেন।

‘ওয়ান লাইফ টু লাইভ’ শোতে অতিথি উপস্থিতির মধ্য দিয়ে কোর্টনি তার অভিনয়ের সূচনা করেছিলেন। সবেমাত্র ৩৯ বছর বয়সী কারদাশিয়ান তার লোভনীয় ফটোশুট দিয়ে ভক্তদের জ্বালাতন করেন। ‘কিপিশিয়ানদের সাথে রাখুন’ তারকা, যিনি তিনজনের মা তিনি ছোট অর্ধ-বোন কাইলি জেনারের জনপ্রিয় মেক-আপ লাইন কাইলি কসমেটিক্সের শুটিংয়ে ব্যস্ত।

তিনি লিখেছেন, আমি কাইলিজেন্নারের সাথে আমার সহযোগিতা ঘোষণা করতে পেরে খুব আনন্দিত। আমরা এক বছর ধরে এটি নিয়ে কাজ করছিৃ ৩ মিনি আইশ্যাডো প্যালেট এবং ৩ টি ঠোঁট..আমি আমার চোখের উপর ম্যাচা পরেছি এবং আমার ঠোঁটে আরএডি। আমাকে শুভ জন্মদিন!.” প্রতিবেদন অনুসারে, রিয়েলিটি স্টার তার নিজের প্রসাধনী লাইনটি চালু করার জন্য প্রস্তুতকালে ব্যবসায়ের নাম ‘কোর্ট’ এর মালিকানার জন্য আইনী দলিল দায়ের করেছিলেন।

 

করোনা ফান্ডে অনুদান দিলেন কোহলি-আনুশকা

বিনোদন বাজার ॥ করোনাভাইরাসের কারণে সৃষ্ট সংকটময় পরিস্থিতি মোকাবিলায় যে যার অবস্থান থেকে সহযোগিতার হাত বাড়িয়ে দিচ্ছেন ভারতীয় ক্রিকেটাররা। এরই মধ্যে শচিন টেন্ডুলকার ৫০ লাখ, সুরেশ রায়না ৫২ লাখ, অজিঙ্কা রাহানে ১০ লাখ, এমনকি ১৬ বছরের রিচা ঘোষও দিয়েছেন ১ লাখ টাকার অনুদান।

করোনা পরিস্থিতি মোকাবিলায় নিয়মিতই সচেতনতামূলক বার্তা দিচ্ছিছেন ভারতের বর্তমান অধিনায়ক বিরাট কোহলি। তবে তার কোনো অনুদানের খবর পাওয়া যাচ্ছিল না সংবাদমাধ্যমে। এর ফলে সমালোচকরা পেয়ে বসেছিল দারুণ এক সুযোগ।

অবশেষ সোমবার (৩০ মার্চ) সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যম টুইটারে করোনা ফান্ডে অনুদান দেয়ার কথা জানিয়েছেন কোহলি। তিনি একা নন, স্ত্রী আনুশকা শর্মার সঙ্গে মিলেই প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদি এবং মহারাষ্ট্রের মুখ্যমন্ত্রীর করোনা ফান্ডে দান করার কথা জানিয়েছেন কোহলি।

টুইটারে তিনি লিখেছেন, প্রধানমন্ত্রী এবং মহারাষ্ট্রের মুখ্যমন্ত্রীর ত্রাণ তহবিলে আমি এবং আনুশকা নিজেদের সমর্থন জানাচ্ছি। সাধারণ মানুষের কষ্ট দেখে মন ভেঙে যাচ্ছে আমাদের। আশা করি, আমাদের এই অনুদান কোনোভাবে দেশের মানুষের কষ্ট দূর করতে কাজে আসবে। ভারত লড়ছে করোনার বিরুদ্ধে।কোহলির এ টুইট দেখে বোঝার উপায় ছিলো না, ঠিক কত টাকা দান করেছেন তারা দুজন মিলে। একপক্ষ বাহবা দিচ্ছিল দানের অঙ্ক প্রকাশ না করায় আবার আরেকপক্ষ বলছিল, অল্প পরিমাণে দান করায় সেটি প্রকাশ করেননি কোহলি।

ভারতের বলিউডভিত্তিক সংবাদমাধ্যমের খবর অনুযায়ী দুজন মিলে ৩ কোটি টাকা দিয়েছেন করোনা ফান্ডে। তবে সঙ্গতকারণেই সেটি প্রকাশ করেননি কোহলি ও আনুশকা।

করোনায় আক্রান্ত হয়ে অভিনেতা ‘কাইশ্যা’র মৃত্যু

বিনোদন বাজার ॥ করোনা ভাইরাসে আক্রান্ত হয়ে জাপানের জনপ্রিয় কৌতুক অভিনেতা ও রক ‘এন’ রোল ব্যান্ড ও কমেডি গ্রুপের সাবেক সদস্য কেন শিমুরা মারা গেছেন। টোকিওর একটি হাসপাতালে রোববার (২৯ মার্চ) তার মৃত্যু হয়। মৃত্যুকালে তার বয়স হয়েছিল ৭০ বছর।

রয়টার্সের খবরে বলা হয়েছে, জ্বর ও নিউমোনিয়ার কারণে কেন শিমুরাকে ২০ মার্চ হাসপাতালে ভর্তি করা হয়। রবিবার চিকিৎসকরা তাকে মৃত ঘোষণা করেন।

১৯৭০ সালের দিকে অভিনয় জগতে প্রবেশ করেন এই কমেডিয়ান। ১৯৫০ সালের ২০ ফেব্রুয়ারি জাপানের টোকিওতে জন্মগ্রহণ করেন তিনি। শিমুরার ‘বকটনো-সাম’ শট জাপানি কৌতুকাভিনেয়দের মধ্যে অস্বাভাবিক ছিল। সমসাময়িক সমাজের বর্তমান অভিভাবকদের (একটি কোম্পানির প্রেসিডেন্ট, একজন রাজনীতিবিদ, পরিবার প্রধান, স্কুল প্রিন্সিপাল, জাপানের প্রধান ইয়াকুজা গ্যাং) একটি নির্বোধ রাজার অধীনে দীর্ঘদিন দেশে বসবাসের শোতে শিমুরার আরেকটি জনপ্রিয় শট হল ‘হেনা ওজি-সান’ (একটি ঘৃণ্য বয়স্ক ব্যক্তি), যিনি নবজাতক মেয়েদের সঙ্গে নিজেকে পরিবেশন করেন।

এবারই হয়তো পাশে দাঁড়ানোর শেষ সুযোগ : টেইলর সুইফট

বিনোদন বাজার ॥ করোনা ভাইরাস প্রতিরোধে এগিয়ে এসেছেন হলিউডের অনেক তারকা। সেই তালিকায় রয়েছেন মার্কিন পপ তারকা টেইলর সুইফট। তিনি আক্রান্ত ও আর্থিকভাবে অসচ্ছল দুজন ভক্তকে ৩ হাজার ডলার করে দিয়ে সহায়তা করেছেন।

করোনা ভাইরাসের প্রভাবে বিশ্ব অর্থনীতিতে স্থবিরতা নেমে এসেছে। অনেকের আয়-উপার্জন বন্ধ হওয়ার পথে। টেইলর সুইফটের অনেক ভক্তেরও একই অবস্থা। তাদের অনেকেই কাজ হারিয়ে বেকার দিন কাটাচ্ছেন। সম্প্রতি তারা অনেকেই চমকে গিয়েছেন।

হলি টার্নার কাজ করেন ফ্রিল্যান্স মিউজিক ফটোগ্রাফার ও গ্রাফিক ডিজাইনার হিসেবে। অন্য অনেকের মতো তিনিও বেকার দিন কাটাচ্ছেন। তিনি সম্প্রতি সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে লিখেছিলেন যে, তার জীবিকা হুমকির মুখে এবং তিনি নিউইয়র্ক শহর ছেড়ে যাওয়ার পরিকল্পনা করছেন।

টেইলর সুইফট এ কথা জানতে পেরে হলি টার্নারের জন্য ৩ হাজার ডলার পাঠিয়ে লিখেছেন, ‘হলি তুমি সবসময় আমার পাশে ছিলে। এখন আমি তোমার পাশে থাকতে চাই। আমি আশা করি এ অর্থ তোমার কাজে আসবে। ভালোবাসা। টেইলর।’

গণমাধ্যমে টেইলর বলেন, ‘এমন একটা সময়ের মধ্য দিয়ে যাচ্ছি যে, জানি না কাল কী হবে। আমি মানুষের পাশে সবসময় থাকতে চাই। আর এবারই হয়তো পাশে দাঁড়ানোর শেষ সুযোগ। আমি সবাইকে নিয়ে বাঁচতে চাই।’

নিজ জায়গা থেকে আমাদের সবার এগিয়ে আসতে হবে : অপু বিশ্বাস

বিনোদন বাজার ॥ পুরোবিশ্বের এই ক্রান্তিকালে সহযোগিতা নিয়ে এগিয়ে এসেছেন বিশ্বের অনেক বিখ্যাত তরাকারা। আমাদের দেশেও সেই উদাহরণে রয়েছেন কয়েকজন। সম্প্রতি দেশের জনপ্রিয় চিত্রনায়িকা অপু বিশ্বাস এমন উদ্যোগে এগিয়ে এসেছেন।

করোনা ভাইরাস প্রতিরোধে সরকার ১০ দিনের ছুটি ঘোষণা করেছে। একইসঙ্গে সকল গণপরিবহন ও সরকারি অফিস বন্ধ ঘোষণা করেছে। মধ্যবিত্ত মানুষেরা কোনোরকমে এ দুযোর্গ মোকাবেলা করতে পারলেও বিপদে পরেছেন নিম্ন আয়ের মানুষেরা। বিশেষ করে রিকশা-ভ্যান চালক ও দিনমজুরদের আয় একদম শূন্যে নেমে এসেছে। দেশের এ সকল মানুষদের অনেকেই অসহায় দিন পার করছেন। তাদের সহায়তায় এগিয়ে এলেন জনপ্রিয় নায়িকা অপু বিশ্বাস।

অপু বিশ্বাস বর্তমানে থাকেন রাজধানী বসুন্ধরা আবাসিক এলাকায়। বসুন্ধরার মূল ফটকে ১০০ জন নিম্ন আয়ের মানুষকে দিয়েছেন করোনা ভাইরাস মোকাবেলার জন্য মাস্ক, গ্লাভস। একইসঙ্গে দিয়েছেন খাবার।

সহায়তা বিতরণ কার্যক্রমটি অপু বিশ্বাস তার ফেসবুক পেজ থেকে লাইভ করেন। অপু বলেন, ‘বলতে পারেন আমরা যারা আর্থিকভাবে স্বচ্ছল তাদের প্রত্যেকের উচিত এ সময়ে এগিয়ে আসা। তাই নিজের তাগিদে আমি রাস্তায় নেমেছি। চেষ্টা করবো এ সহায়তা নিয়মিত করতে।’

তিনি আরও বলেন, ‘খুব খারাপ একটা সময় পার করছি আমরা। আমরা হয়তো অনেকেই কয়েক মাস কোনো কাজ না করেও চলে যেতে পারবো। কিন্তু যে মানুষগুলো দিন আনে দিন খায় তাদের কী হবে। সেই কথাগুলো আমাদেরই ভাবতে হবে। তাই নিজ জায়গা থেকে আমাদের সবার এগিয়ে আসতে হবে।’

উল্লেখ্য, এরইমধ্যে বেশ কয়েকজন শিল্পী সহযোগিতার জন্য এগিয়ে এসেছেন। অসহায় মানুষদের কাছে তারা প্রয়োজনীয় জিনিস ও খাবার পৌঁছে দিয়েছেন। দেশের জনপ্রিয় চিত্রনায়ক অনন্ত জলিল সাধারণ মানুষ ও অস্বচ্ছল শিল্পীদের জন্য অর্থ সাহায্য করেছেন।

নার্স হয়ে করোনারোগীদের সেবায় অভিনেত্রী

বিনোদন বাজার ॥ অভিনয়ের জগতে পা রাখলে তখন অভিনয়কেই পেশা হিসেবে বেছে নেন বড় পর্দার অভিনয় শিল্পীরা। প্রাতিষ্ঠানিক জীবনের শিক্ষার দিকে নজর দেয়া আর হয়ে উঠে না।

এবার প্রাতিষ্ঠানিক শিক্ষাকে কাজে লাগিয়ে করোনায় আক্রান্তদের সেবা করলেন বলিউড অভিনেত্রী শিখা মালহোত্রা। মুম্বইয়ে যোগেশ্বরী পূর্বের বালাসাহেব ঠাকরে ট্রমা হাসপাতালের আইসোলেশন বিভাবে জরুরি পরিষেবায় কাজ করছেন তিনি।

সিনেমার জগতে পা রাখার আগে নার্সিং কোর্স সম্পন্ন করেছিলেন তিনি। ২০১৪ সালে দিল্লির নার্সিং কোর্স শেষ করেন শিখা।  তাই এগিয়ে এলেন করোনায় আক্রান্ত রোগীদের সেবায়। মুম্বইয়ের এক হাসপাতালে সাহায্য করছেন করোনা আক্রান্তদের।

সঞ্জয় মিশ্রর সঙ্গে ‘কাঞ্চলি’ ছবিতে অভিনয় করে দারুণ জনপ্রিয়তা পেয়েছিলেন এই অভিনেত্রী।

উল্লেখ্য, ভারতে মহারাষ্ট্রকে করোনার এপিসেন্টার  হিসেবে গণ্য করা হচ্ছে। সেখানে আক্রান্তের সংখ্যা অত্যাধিক। রোগীর সংখ্যা বেশি হওয়ায় হাসপাতালের নার্সরা যেন নিঃশ্বাসও ফেলতে পারছেন না।  নার্সের পোশাকে শিখার ছবি ব্যাপকভাবে ভাইরাল হয় সামাজিক যোগাযোগমাধ্যমে।

সুস্মিতা সেনের হ্যাপি কোয়ারান্টাইন!

বিনোদন বাজার ॥ করোনা ভাইরাসের ভয়াবহতা সারাবিশ্বে। লকডাউন করে দেয়া হয়েছে অনেক দেশ। ফলে অভিনয় শিল্পীরা নিজেদের বন্দি করে নিয়েছেন হোম কোয়ারেন্টাইনে। একেক সময়গুলো পার করছেন বিভিন্নভাবে। কেউ লিখে ফেলছেন চিত্রনাট্য। এভাবেই দিব্য খোশমেজাজে লকডাউনের সময় সবাই মিলে দিন কাটাচ্ছেন সুস্মিতা সেন।

ক্রাশখ্যাত নায়িকা সুস্মিতা সম্প্রতি সামাজিক মাধ্যমে একটি ভিডিও শেয়ার করেছেন। ভিডিওটিতে দেখা গেছে প্রেমিক রোহমান শাল, দুই মেয়ে রেনে আর আলিসাকে। পুরোটাই নিজের হাতে ক্যামেরাবন্দি করেছেন সুস্মিতা। সেই সময় রোহমানকে তিনি ক্যামেরা-লাজুক বলে মন্তব্য করেন। কী করে প্রত্যেকে লকডাউনে সবাই পরিবারের বাকি তিন সদস্য সময় কাটাচ্ছেন, সেসব মজাদার প্রশ্ন করেছেন ভিডিওতে। বিশ্বসুন্দরীর ছোট মেয়ে আলিসার চটপটে জবাব, “আপনার পরিবারের সঙ্গে সময় কাটান। প্রচুর খাবার এবং কেক খান। অবশ্যই আপনার খাবারগুলি সবার সঙ্গে ভাগ করে নেবেন।”

বড় মেয়ে রেনে জানান, চিনি চিত্রনাট্য লেখার কাজে ব্যস্ত। ভিডিওর শেষে ক্যাপশনে সুস্মিতা লিখেছেন, আমার দুনিয়া, আনন্দে ঝলমলে।

পরিবারের সঙ্গে গৃহবন্দি অভিনেত্রী করোনা ভাইরাস সম্পর্কে সক্রিয়ভাবে সচেতনতার কথা বলেন। এই সংকটের সময়ে কী করা উচিত তাও ইনস্টাগ্রাম পোস্ট করে জানান সুস্মিতা। তিনি বলেন, বাড়িতে থাকাকালীন কেউ অসুস্থ হয়ে পড়লে চিকিৎসকের পরামর্শ না নিয়ে কেউ ওষুধ খাওয়াবেন না। বা নিজেও খাবেন না।

করোনাতেও খামতি নেই প্রিয়াঙ্কার রোমান্সে!

বিনোদন বাজার ॥ সারাবিশ্বে এক আতঙ্কের নাম বরোনা ভাইরাস। মৃত্যু ও আক্রান্তের সংখ্যা বাতাসের গতির সঙ্গে বেড়েই চলেছে। সুপার স্টাররা নিজেদের বন্দি বরে নিয়েছে গৃহে। ভালবাসায় খামতি নেই প্রিয়াঙ্কা চোপড়া ও নিক জোনাসের। গত কয়েকদিন ধরে মার্কিন মুলুকে হোম কোয়ারান্টাইনে এই তারকা দম্পতি।

হু-এর মতে, করোনার আগামী ভরকেন্দ্র সম্ভবত মার্কিন যুক্তরাষ্ট্র। এই পরিস্থিতিতে নিউ ইয়র্কে হোম কোয়ারান্টইন থেকেই নিজেদের ঘনিষ্ঠ মুহূর্তের ভিডিও সোশাল মাধ্যমে পোস্ট করলেন প্রিয়াঙ্কা। বন্ধুদের সঙ্গে ইনস্টাগ্রাম আড্ডায় মেতেছিলেন এই তারকা দম্পতি। সেই সময় নিককে চুম্বন করেন প্রিয়াঙ্কা। আর এই ভিডিও এখন সোশাল মাধ্যমে ভাইরাল। সেই ভিডিওতে দেখা গিয়েছে বাদামি জাম্পস্যুটে প্রিয়াঙ্কা আর আর নেভি ব্লু টি-শার্টে নিক জোনাস রোমান্সে মগ্ন ।

দিন কয়েক আগে হু-এর অধিকর্তার সঙ্গে আলাপ-আলোচনা করতে দেখা গিয়েছে প্রিয়াঙ্কাকে। সেই আসরে কোভিড-১৯ সংক্রমণ নিয়ে একাধিক সওয়াল-জবাব পর্ব দুই পক্ষে চলেছে । এমনকি বিশ্বকে সচেতন করতে ইউনিসেফের দূত হিসেবেও টুইটারে ভিডিও পোস্ট করেছেন প্রিয়াঙ্কা চোপড়া।

হোলি উৎসবের আগে এই দম্পতিকে ভারতে দেখা গিয়েছিল। নীতা আম্বানির হোলি পার্টিতেও দেখা গিয়েছিল এই তারকা দম্পতিকে।

মিলন-অর্ষার ‘আজও সেই তুমি’

বিনোদন বাজার ॥ নাট্যনির্মাতা সকাল আহমেদের নির্দেশনায় আনিসুর রহমান মিলন ও নাজিয়া হক অর্ষা অভিনয় করেছেন ‘আজও সেই তুমি’ নাটকে। তানজিলা আহমেদের গল্পে এটি রচনা করেছেন রাজীব আহমেদ। রাজধানীর উত্তরায় একটি শুটিং হাউসে বাংলাদেশে করোনা ভাইরাসে কড়াকড়ি জারির আগেই নাটকটির দৃশ্যায়ন কাজ শেষ হয়েছে।

নাটকের গল্প ও অভিনয় প্রসঙ্গে আনিসুর রহমান মিলন বলেন, ছোট্ট একটি ইস্যু নিয়ে নাটকটির গল্প এগিয়ে যায়। স্বামী জানে স্ত্রী মা হতে পারবে না। কিন্তু স্বামী যে বিষয়টি জানে সেটা কোনোভাবেই স্ত্রীকে বুঝতে দিতে চায় না স্বামী। স্ত্রী নিজের সম্পর্কে এই বিষয়ে অবগত নয়। যে কারণে স্ত্রী চায় সন্তান নিতে। এই নিয়ে স্বামীর সঙ্গে স্ত্রীর রাগারাগিও হয়, হয় ভুল বুঝাবুঝিও। এমনই মনস্তাত্ত্বিক দ্বন্দ্বের গল্প নিয়ে নাটকটি নির্মিত হয়েছে। সকালের কাজ সবসময়ই খুব ভালো হয়, যতœ নিয়ে নাটক নির্মাণের চেষ্টা থাকে তার। আর অর্ষার সঙ্গে আমার রসায়নটা চমৎকার।

অর্ষা বলেন, মিলন ভাইয়ের সঙ্গে অভিনয় করতে আমি অন্যরকম আনন্দ পাই। কারণ সহশিল্পীর সঙ্গে যদি ভালো বোঝাপড়া থাকে, তাহলে অভিনয় জমে ওঠে। জানা যায়, নাটকটি আগামী ঈদে মাছরাঙ্গা টিভিতে প্রচার হবে।

অভিনেতা কাজী মারুফ স্ত্রীসহ করোনায় আক্রান্ত

বিনোদন বাজার ॥ করোনাভাইরাসে আক্রান্ত হয়েছে ঢাকাই সিনেমার খ্যাতিমান নির্মাতা কাজী হায়াতের ছেলে কাজী মারুফ ও তার স্ত্রী। বর্তমানে মারুফ তার স্ত্রীকে নিয়ে নিউইয়র্কে অবস্থান করছেন। ছেলে ও ছেলে বউয়ের করোনা আক্রান্তের খবরটি নিশ্চিত করেছেন কাজী হায়াৎ।

কাজী হায়াৎ বলেন, একটা দুঃসংবাদ পেলাম আমার ছেলে মারুফের স্ত্রী করোনায় আক্রান্ত হয়েছেন। মারুফের শরীরেরও করোনার লক্ষণ দেখা দিয়েছে। আমার ছেলে ও তার স্ত্রীর জন্য সবাই দোয়া করবেন। তারা যেনো সুস্থ হয়ে ফিরে আসতে পারে।

২০০২ সালে ‘ইতিহাস’ সিনেমায় অভিনয় দিয়ে কাজী মারুফ তার চলচ্চিত্র জীবন শুরু করেন। কাজী হায়াৎ পরিচালিত প্রথম সিনেমাতেই জাতীয় চলচ্চিত্র পুরস্কার পেয়েছিলেন কাজী মারুফ।

এরপর আরও বেশ কিছু সিনেমা উপহার দিয়েছেন মারুফ।

সৃজিতের লেখা গান ঢাকায় বসে গাইলেন মিথিলা!

বিনোদন বাজার ॥ সৃজিত ও মিথিলা দুইজন আছেন দুই দেশে। করোনা থেকে নিরাপদ থাকতে বাসাতেই সময় কাটাচ্ছেন তারা। ভিডিও কলের মাধ্যম্যে চলছে তাদের খুনসুটি।  করোনা ঠেকাতে আপাতত ভিসা বন্ধ থাকায় আনুষ্ঠানিক বিয়ের পর থেকে একে অপরের থেকে আলাদাই থাকতে হচ্ছে সৃজিত-মিথিলাকে। সৃজিত রয়েছেন কলকাতায়। আর মিথিলা তাঁর ঢাকার বাড়িতে। করোনার প্রকোপে কাছে আসার উপায় নেই।

হোম কোয়ারেইন্টাইনে মেয়েকে নিয়ে সময় কাটছে মিথিলার।

আরি এই সময়ে সৃজিতের লেখা গানে ঘরে বসে নিজের গিটারের ছোয়ায় কণ্ঠ দিয়েছেন রাফিয়াত রশিদ মিথিলা। ভিডিওটি সামাজিক মাধ্যমে আসতেই মুহূর্তেই ভাইরাল হয়ে যায়।

‘সকালের আলো মেখে চার চাকা পায়ে, কবে দূর, যাবে আবার! বৃষ্টিতে ভেজা চোখে রেলিং তাকায়, খুঁজে সুর, পাবে আবার ! সেই হারানো চড়–ুইয়ের ডাক, বলে যে গেছে সে চলে যাক!” গানটি মৈনাক ভৌমিকের ‘মাছ মিষ্টি অ্যান্ড মোর’-এর জন্য লিখেছিলেন সৃজিত মুখোপাধ্যায়। নীল দত্তের সুরে গানটি গেয়েছিলেন সোমলতা আচার্য। এবার এই গানই গাইলেন সৃজিতের স্ত্রী মিথিলার।

নিজের লেখা এই গানটি স্ত্রীর গলায় শুনে আবেগতাড়িত সৃজিত মুখোপাধ্যায়ও এটিকে নিজের টুইটার হ্যান্ডেলে শেয়ার করেছেন।

প্রসঙ্গত, অনেকেই হয়তবা জানেন না সৃজিত মুখোপাধ্যায়ের স্ত্রী রাফিয়াত রশিদ মিথিলা বাংলাদেশের একজন জনপ্রিয় অভিনেত্রী এবং সঙ্গীতশিল্পী। এর আগে মিথিলা নিজেও বেশকিছু গানের লিরিক্স লিখেছেন।

ক্যাটরিনার বিরুদ্ধে চুরির অভিযোগ দীপিকার!

বিনোদন বাজার ॥ বলিউড তারকা দীপিকা পাড়ুকোন ও ক্যাটরিনা কাইফের মধ্যে বন্ধুত্বের চেয়েও চোরা প্রতিদ্বন্দ্বিতার কথাই বেশি শোনা যায়। ব্যক্তিজীবনেও একজনের প্রাক্তনের সঙ্গে সম্পর্কে ছিলেন অন্যজন।

করোনা পরিস্থিতির মধ্যে দুজনের প্রতিদ্বন্দ্বিতার বিষয়টি আবার সামনে এলো। স্যোশাল মিডিয়ায় ভাইরাল হওয়া ক্যাটরিনার একটি ভিডিও নিয়ে তার বিরুদ্ধে চুরির অভিযোগ তুলেছেন দীপিকা।

জানা গেছে, করোনা আতঙ্কে হোম কোয়ারেন্টিনে থাকা ক্যাটরিনা সোশ্যাল মিডিয়ার মাধ্যমে ভক্তদের বাসনমাজা শিখিয়েছেন। ক্যাটের পোস্ট করা ভিডিওটি ভাইরালও হয়েছে।

ক্যাটের ভিডিওটি নিজের সোশ্যাল মিডিয়ায় পোস্ট করে দীপিকা লিখেছেন, আমি দুঃখপ্রকাশ করছি, সেশন-১ এর এপিসোড ৫টা দেখাতে পারব না। কারণ, ক্যাটরিনা আমার এই আইডিয়াটা চুরি করে নিয়েছে।

তবে কনসেপ্ট চুরির মধ্য দিয়ে মনের মানুষ চুরিরও কি প্রচ্ছন্ন ইঙ্গিত দিলেন দীপিকা?

দীপিকার এই পোস্ট থেকেই স্পষ্ট, ক্যাটের মতো বাসন মাজার টিউটোরিয়াল শেয়ার করার পরিকল্পনা তারও ছিল। তবে দীপিকার আগেই বাজি মেরেছেন ক্যাট।

ভারতে করোনা সহায়তা তহবিলে ২৫ কোটি অনুদান দিলেন অক্ষয়

বিনোদন বাজার ॥ করোনায় ভয়াবহ ছোবলে বিশ্বের সঙ্গে কাঁপছে ভারতও। ভারতে প্রতিদিন বাড়ছে আক্রান্তের সংখ্যা। দেশটির করোনা ভাইরাসের মহামারি মোকাবিলায় খোলা হয়ে ‘প্রধানমন্ত্রী’ নাগরিক সহায়তা এবং পিএম কেয়ারস নামে সরকারি তহবিল। এতে দেশের সকলকে অনুদানের জন্য আহবান জানানো হয়েছে । আর এই ডাকে সাড়া দিয়েছেন ভারতে জনপ্রিয় অভিনেতা অক্ষয় কুমার।

অক্ষয় কুমার এক টুইট বার্তায় জানান যে, তিনি প্রধানমন্ত্রীর নাগরিক সহায়তা তহবিলে ২৫ কোটি রুপি অনুদান দেওয়ার শপথ নিয়েছেন।

অক্ষয় তার টুইট বার্তায় জানান, এখন সময় এসেছে মানুষের জীবন নিয়ে ভাববার। আমাদের এর জন্য সব কিছু করা প্রয়োজন। আমি আমার সঞ্চিত অর্থ থেকে প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদির পিএম কেয়ার তহবিলে ২৫ কোটি রুপি অনুদান দেওয়ার প্রতিজ্ঞা করছি। চলুন জীবন বাঁচাই। জীবন আছে তো পৃথিবী আছে।জানা যায়, ভারত সরকারের এক বিবৃতিতে বলা হয়, করোনা ভাইরাসের ছড়িয়ে পড়া বিপদজনক। এটি অর্থনৈতিক এবং স্বাস্থ্যক্ষেত্রের ক্ষতি করছে। প্রধানমন্ত্রীর দপ্তরে অনেক মানুষ জরুরি পরিস্থিতিতে সহায়তার জন্য সরকারে কাছে আবেদন জানিয়েছে। তাই যে কোন পরিস্থিতি বা জরুরি পরিস্থিতির মোকাবিলায় নির্দিষ্ট তহবিলের প্রয়োজনীয়তার কথা মাথায় রেখে, এমন কোভিড ১৯ এর মোকাবিলা করা, এবং ক্ষতিগ্রস্তদের সাহায্য করার জন্য ‘প্রধানমন্ত্রী’ নাগরিক সহায়তা এবং পিএম কেয়ারস নামে সরকারি তহবিল খোলা হয়েছ।

এদিকে, ভারতে লাফিয়ে লাফিয়ে বেড়েই চলছে করোনায় আক্রান্তের সংখ্যা । গত ২৪ ঘণ্টায় দেশটিতে অন্তত ১৪৯ জন কোভিড-১৯ করোনা ভাইরাসে আক্রান্ত হয়েছে। এ নিয়ে দেশটিতে মোট আক্রান্তের সংখ্যা দাঁড়ালো ৮৭৩ জনে। এর মধ্যে ১৯ জনের মৃত্যু হয়েছে।

কারও মুখ বন্ধের চেষ্টা করাটা বোকামি : কারিনা

বিনোদন বাজার ॥ হৃত্বিকের সঙ্গে কারিনার প্রেমের সম্পর্কের গুঞ্জন এখন বেশ পুরনো। তবুও হঠাৎ করে পুরনো খবর আবারও নতুন করে সামনে আসে। সম্প্রতি এমনই একটি খবরে শিরোনামে এলেন কারিনা।

২০০০ সালে বলিউডের সুপারহিট জুটি তাদের। ম্যায় প্রেম কি দিওয়ানি হু-এর পাশপাশি মুঝসে দোস্তি করোগি, কভি খুশি কভি গম কিংবা ইয়াদে, পরপর বেশ কয়েকটি সিনেমায় একসঙ্গে দেখা গিয়েছে তাদের। বক্স অফিসে যখন তাদের একের পর এক সিনেমায় দেখা যায়, সেই সময় তাদের ব্যক্তিগত সম্পর্ক নিয়ে অনেকেই প্রশ্ন তুলতে শুরু করেন।

একটি পুরনো সাক্ষাৎকারে হৃত্বিকের সঙ্গে সম্পর্ক নিয়ে মুখ খোলেন কারিনা কাপুর। সেসময় তিনি বলেন, ‘লোকে আমাদের নিয়ে অনেক কথাই বলেন, কিন্তু তাতে কিছু যায় আসে না। কারও মুখ বন্ধের চেষ্টা করাটা বোকামি। তারা বলবেই। তাই নিজের মতো থাকি। হৃত্বিক আমার ভালো বন্ধু। তাই আমাদের নিয়ে কেউ কোনো মন্তব্য করলে সেসব নিয়ে মাথা ঘামাই না। শুধু তাই নয়, যদি কারও নামের সঙ্গে তারকা ট্যাগ জুড়ে যায় তাহলে প্রতিদিনের এই ধরনের গুঞ্জন ভালো, ডালের মতো হয়ে যায় বলেও মন্তব্য করতে শোনা যায়।’

প্রসঙ্গত, ম্যায় প্রেম কি দিওয়ানি হু-এর পর কারিনার সঙ্গে হূত্বিকের পাশাপাশি তার বাড়ির লোকের সম্পর্কও ভালো হয়ে উঠতে শুরু করে বলে শোনা যায়। কিন্তু হূত্বিক বিবাহিত, সেই কারণেই তার কাছ থেকে ক্রমশ দূরত্ব বজায় রেখে চলতে শুরু করেন কারিনা।—এমন কথাও শোনা যায় বি টাউনে। যদিও এসব গুঞ্জনের কোনোকিছুকেই পাত্তা দেননি কারিনা।

সেই গুঞ্জনের পরই শহীদ কাপুরের সঙ্গে সম্পর্কে জড়ান কারিনা কাপুর। দীর্ঘ কয়েকবছর লিভ ইন সম্পর্কেও তারা ছিলেন বলে জানা যায়। যদিও সেই সম্পর্ক স্থায়ী হয়নি কারিনার। এরপর সাইফ আলী খানের প্রেমে পড়েন তিনি। এই সম্পর্ক অবশ্য এক অবধি টিকে আছে। বিয়ে করে রীতিমতো সুখে সংসার করছে কারিনা-সাইফ দম্পতি।

অলস সময়ে কোহলির চুল কেটে দিচ্ছেন অনুষ্কা

বিনোদন বাজার ॥ করোনা ভাইরাসের কারণে গৃহবন্দি হয়ে পড়েছেন সাধারণ মানুষ থেকে বড় বড় তারকারাও। এমন সময় নানা ধরনের কাজ করে অনেকেই আলোচনার জন্ম দিয়েছেন। বিশেষ করে ভারতে নাগরিকরা। করোনা আতঙ্কে দেশটিতে চলছে ২১ দিনের লকডাউন। তবে এই সময় সবাই কিছু না কিছু করে সময় কাটানোর চেষ্টা করছেন। কেউ ছবি আঁকছেন। কেউ আবার সুস্বাদু রান্না করে মন ভাল রাখছেন। কেউ কেউ আবার প্রিয় মানুষের সঙ্গে ব্যক্তিগত সময় কাটাচ্ছেন।

যাঁরা শুটিংয়ের চাপে বা খেলার চাপে এতদিন নিজেদের পরিবারকে সময় দিতে পারতেন না, তারা এই হোম কোয়ারেন্টাইনের সময়টাকে ভাল ভাবে কাজে লাগাচ্ছেন। সময় দিচ্ছেন প্রিয় মানুষকে। এই যেমন বিরাট কোহলি অনুষ্কা শর্মার কথাই ধরুন। এই সময় প্রায় প্রত্যেক সেলিব্রিটি বিভিন্ন মজাদার ভিডিও পোস্ট করছেন সোশ্যাল মিডিয়ায়। আর এবার এমনই মজাদার ভিডিও পোস্ট করলেন বিরুষ্কা। শনিবার (২৮ মার্চ) সকালে ইনস্টাগ্রামে একটি ভিডিওতে দেখা যাচ্ছে হোম কোয়ারেন্টাইনে থাকাকালীন নিজের স্বামীর চুল কাটছেন অনুষ্কা শর্মা। সত্যি কি নিজের স্বামীর চুল কেটে দিচ্ছেন অনুষ্কা?

প্রতিদিনের জীবনের কিছু প্রয়োজনীয় হ্যাক প্রায় সবাই সোশ্যাল মিডিয়ায় শেয়ার করে থাকেন। এমনই এক হ্যাক শেয়ার করেছেন বিরুষ্কা। হোম কোয়ারেন্টাইনে থাকাকালীন সময় তো কিছু একটা করে সময় কাটাতে হবে! তাই নিজের রান্নাঘরে ব্যবহৃত কাঁচি দিয়েই বিরাটের চুল ছেঁটে দিচ্ছেন অনুষ্কা। বর্তমান পরিস্থিতিতে সাধারণ মানুষের সুস্থতা কামনা করে সোশ্যাল মিডিয়ায় ভিডিও পোস্ট করেছিলেন বিরাট—অনুষ্কা। সঠিক পদ্ধতিতে হাত ধোয়ার এবং বাড়িতে থাকার আর্জিও জানিয়েছিলেন এই সেলেব্রিটি যুগল।

বিটিভিতে মুক্তিযুদ্ধের নাটক ‘কৃষ্ণপক্ষ’

বিনোদন বাজার ॥ বাংলাদেশ টেলিভিশনে প্রচার হবে জয়ন্ত চট্টোপাধ্যায়, আজিজুল হাকিম, শতাব্দী ওয়াদুদ অভিনীত মুক্তিযুদ্ধের নাটক ‘কৃষ্ণপক্ষ’।

এক সংবাদ বিজ্ঞপ্তিতে জানানো হয়েছে, শনিবার রাত ৯টায় নাটকটির প্রচার হবে। রেজাউর রহমান ইজাজের রচনায় এটি প্রযোজনা করেছেন আবু তৌহিদ।

নাটকের গল্পে দেখা যাবে, ২৫ মার্চ অপারেশন সার্চলাইট শুরুর পর স্বাধীনতাকামী বাঙালি জাতিকে দমাতে মরিয়া হয়ে ওঠে হানাদার বাহিনী। এলাকার চেয়ারম্যানও তাদের সঙ্গে যোগ দেয়। শুরু হয় নির্বিচার হত্যাযজ্ঞ।

হত্যাযজ্ঞের প্রতিবাদ করায় গ্রামের চিকিৎসক নিত্য ডাক্তারকে ধরতে মাঠে নামে হানাদার বাহিনী; অন্যদিকে গ্রামের তরুণরা সংগঠিত হয়ে মুক্তিযুদ্ধে অংশ নেয়।

নাটকে বিভিন্ন চরিত্রে আরও অভিনয় করেন সাইদ বাবু, হাফিজুর রহমান সুরুজ, শামস।

টম হ্যাঙ্কসের ভালো খবর

বিনোদন বাজার ॥ দুই সপ্তাহ অস্ট্রেলিয়াতে কোয়ারেন্টি জীবনের অবসান ঘটিয়ে স্ত্রীসহ দেশে ফিরেছেন টম হ্যাঙ্কস।

এই মহামারীর সময়ে ছোট একটা ভালো খবরও মনে আশা জাগায়। আর সেই জায়গা থেকে কখনই পিছিয়ে আসননি ‘কাস্ট অ্যাওয়ে’ খ্যাত অভিনেতা টম হ্যাঙ্কস।

করোনাভাইরাসে আক্রান্ত হয়ে তিনি ও তার স্ত্রী সংগীত শিল্পী রিটা উইলসন হাসপাতালে ভর্তি ছিলেন। অবস্থার কোনো অবনতি না হওয়ায় ১৭ মার্চ তাদের ছেড়ে দেওয়া হয়েছিল। তবে তারা ছিলেন ‘সেলফ কোয়ারেন্টিন’ অবস্থায়।

হাসপাতালের উদ্ধৃতি দিয়ে সিএনএন জানায়, এই শিল্পী দম্পতি অস্ট্রেলিয়াতেই ‘সেলফ কোয়ারেন্টিন’য়ে ছিলেন। এলভিস প্রিসলির জীবনী নির্ভর এক সিনেমার শুটিংয়ের জন্য তারা অস্ট্রেলিয়াতে গিয়েছিলেন।

টম হ্যাঙ্কস অভিনীত ‘কাস্ট অ্যাওয়ে’ ছবিতে দ্বীপে আটকা পড়ে একাকী জীবন কাটানোর সেই কাহিনির মতোই কেটেছে এই হলিউড অভিনেতার দিনকাল। তবে ছবির গল্পের মতো একা কাটাতে হয়নি তার কোয়ারেন্টিন জীবন; সঙ্গে ছিলেন স্ত্রী।

কেমন কেটেছে এই অভিনেতার কোয়ারেন্টিন জীবন?

এই বিষয়ে নিজেই গত সপ্তাহে ইন্সটাগ্রামের একটি পোস্টে টম হ্যাঙ্কস লেখেন, “হেই ফোকস’, করোনাভাইরাস ধরা পড়ার পর ‘সেল্ফ আইসোলেইশন’- থাকা অবস্থায় লক্ষণে তেমন কোনো পরিবর্তণ হয়নি। জ্বর নেই।”

আদি আমলের একটি ‘করোনা’ ব্র্যান্ডের টাইপ রাইটারের ছবিও তার ইন্সটাগ্রামে পোস্ট করেন।

আর লেখেন, “কাপড় জামা গুছিয়ে রাখা, বাসন মাজা এবং সোফায় ঘুমিয়ে সময় কেটেছে। খারাপ খবর হচ্ছে আমার স্ত্রী রিটা উইলসন কার্ড খেলে আমাকে পর পর ছয়বার হারিয়েছে। আর আমি শিখেছি রুটিতে কীভাবে ‘ভেগমিট’ জেলি কম পুরু করে মাখাতে হয়। সঙ্গে আমার প্রিয় টাইপ রাইটারটা নিয়ে এসেছিলাম। এটা ব্যবহার করতে খুবই পছন্দ করি। আমরা সবাই একসঙ্গে আছি। মহামারীর ‘কার্ভ’ কমিয়ে আনবই।”

এদিকে রয়টার্স জানায়, অস্ট্রেলিয়ার দুই সপ্তাহের কোয়ারেন্টিন জীবন শেষ করে শুক্রবার টম হ্যাঙ্কস দম্পতি লস অ্যাঞ্জেলেসে ফিরেছেন।

করোনার লকডাউনে হৃতিকের বাড়িতে প্রাক্তন স্ত্রী

বিনোদন বাজার ॥ করোনা ভাইরাস ঠেকাতে ভারতে যখন লকডাউন চলছে, ঠিক তখনি জনপ্রিয় অভিনেতা হৃতিক জানালেন প্রাক্তন স্ত্রীর খবর। বুধবার সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে ঘরের ভেতর তোলা স্ত্রী সুজানের একটি ছবি পোস্ট করে হৃতিক জানিয়েছেন তার ভালো লাগার কথা । খবর দিলেন প্রাক্তন স্ত্রীর ঘরে ফেরার।

গণমাধ্যমে জানা যায়, ভারতে জুড়ে চলছে টানা ২১ দিনের লকডাউন। এই সযোগে দুই সন্তানকে মা বাবার আদর দিতেই হৃতিকের বাড়িতে চলে এসেছেন প্রাক্তন স্ত্রী সুজান। তাদের ঘরে দুই ছেলে রেহান (১৩) ও হৃধান (১১)।

হৃতিক লিখেছেন, লকডাউনের সময় সন্তানদের কাছ থেকে আলাদা থাকার কথা ভাবা একজন অভিভাবক হিসেবে আমার পক্ষে অসম্ভব। গভীর সংকটের কারণে হয়তো কয়েক মাস ধরে এই সামাজিক দূরত্ব ও লকডাউন থাকার সম্ভাবনা আছে। এ সময় তার সাবেক স্ত্রী সুজান অস্থায়ীভাবে তার ফ্লাটে উঠেছেন যাতে দুই জনেই সন্তানের কাছে থেকে যতœ নিতে পারেন। নিজের ও প্রিয়জনদের সুস্বাস্থ্যের জন্য সবাই ভালোবাসা, সহানুভূতি, সাহস ও শক্তি প্রকাশের মাধ্যম খুঁজে পাবে।

এই অভিনেতা লিখেছেন, আমাদের যৌথ অভিভাবকত্বের পথচলা বোঝার জন্য ও এতটা সহায়তাপ্রবণ হওয়ায় সুজানকে ধন্যবাদ। সন্তানদের জন্য গল্প করার মতো কিছু সৃষ্টি করতে পারলাম। যে গল্প তারা একদিন শোনাবে।

এদিকে, করোনা ভাইরাসের বিস্তার রোধে সবাইকে ঘরে থাকার আহ্বান জানিয়ে একটি ভিডিও বার্তা শেয়ার করেন হৃতিক। তিনি বলেন, জীবাণুটির ছড়িয়ে পড়া বন্ধে সহায়তা করুন। এজন্য খুব সহজ ধাপ অনুসরণ করতে হবে। এটা আমাদের দায়িত্ব।

হৃতিক রোশনের সঙ্গে সুজান খান ২০০০ সালের ২০ ডিসেম্বর বিয়ে হয়। ২০১৪ সালের নভেম্বরে আনুষ্ঠানিকভাবে তাদের বিয়ে বিচ্ছেদ হয়। আদর্শ বাবা-মা হিসেবে সন্তানদের সঙ্গে পারিবারিক ছুটি থেকে শুরু করে মধ্যাহ্নভোজ, সিনেমা হলে ছবি দেখা, নৈশভোজসহ সবকিছুতে অংশ নেন তারা।