রিয়াল বেতিসের বিপক্ষেও থাকছেন না মেসি

ক্রীড়া প্রতিবেদক ॥ চোট কাটিয়ে পুরোপুরি অনুশীলনে ফিরেছিলেন লিওনেল মেসি। কিন্তু নতুন করে সমস্যা দেখা দেওয়ায় রিয়াল বেতিসের বিপক্ষে আর্জেন্টাইন ফরোয়ার্ডকে দলে রাখেননি বার্সেলোনা কোচ এরনেস্তো ভালভেরদে। এ মাসের শুরুতে পায়ের পেশিতে চোট পেয়ে বার্সেলোনার প্রাক-মৌসুম পর্বের যুক্তরাষ্ট্র সফরে যেতে পারেননি মেসি। গত ১৬ অগাস্ট লা লিগায় আথলেতিক বিলবাওয়ের মাছে ১-০ গোলে হেরে যাওয়া নিজেদের প্রথম ম্যাচেও খেলতে পারেননি বার্সেলোনা অধিনায়ক। তবে চোট কাটিয়ে এই সপ্তাহে পুরো অনুশীলনে ফিরেছিলেন মেসি। রোববার কাম্প নউয়ে হতে যাওয়া লিগের দ্বিতীয় রাউন্ডে বেতিসের বিপক্ষে ম্যাচে তার ফেরার সম্ভাবনাও জেগেছিল। কিন্তু শুক্রবার অনুশীলনে অস্বস্তি বোধ করেন তিনি। তাই শনিবার আবারও তাকে একা অনুশীলন করানোর সিদ্ধান্ত নেয় ক্লাব। পরে শনিবার সংবাদ সম্মেলনে বেতিসের বিপক্ষে ম্যাচে মেসিকে দলে না রাখার কথা জানান ভালভেরদে। “মেসি যদি শতভাগ ফিট না থাকে তাহলে সে খেলবে না।” চোটের কারণে আগে থেকেই বাইরে আছেন আক্রমণভাগের দুই খেলোয়াড় লুইস সুয়ারেস ও উসমান দেম্বেলে। এ অবস্থায় মেসির নতুন এই সমস্যা কোচ ভালভেরদের জন্য স্বাভাবিকভাবেই বড় এক মাথাব্যথার কারণ হয়ে দাঁড়ালো।

বের্নাবেউয়ে রিয়ালের হোঁচট

ক্রীড়া প্রতিবেদক ॥ সেল্তা ভিগোকে হারিয়ে লা লিগায় শুভ সূচনা করা রিয়াল মাদ্রিদ হোঁচট খেয়েছে পরের ম্যাচেই। ঘরের মাঠে রিয়াল ভাইয়াদলিদের সঙ্গে ড্র করেছে জিনেদিন জিদানের শিষ্যরা। সান্তিয়াগো বের্নাবেউয়ে নতুন মৌসুমের প্রথম ম্যাচ ১-১ গোলে ড্র হয়েছে। করিম বেনজেমা রিয়ালকে এগিয়ে নেওয়ার পর সমতা ফেরান সের্গি গুয়ার্দিওলা। দ্বাদশ মিনিটে ডি-বক্সের বাইরে থেকে একটুর জন্য লক্ষ্যে থাকেনি গ্যারেথ বেলের বুলেট গতির শট। প্রথমার্ধ জুড়ে দেখা গেছে এই চিত্র। একের পর এক আক্রমণ করেছে রিয়াল, ভীতি ছড়িয়েছে ভাইয়াদলিদের রক্ষণে। কিন্তু জালের দেখা মেলেনি। সপ্তদশ মিনিটে শট লক্ষ্য রাখতে পারেননি বেনজেমা। ধারে দুই মৌসুম বাইরে কাটিয়ে আসা হামেস রদ্রিগেস ঝলক দেখিয়েছেন। ১৯তম মিনিটে লক্ষ্যে থাকেনি তার শট, ৩৫তম মিনিটে বাইরে চলে যায় কলম্বিয়ান এই মিডফিল্ডারের হেড। আক্রমণে ধার বাড়াতে ৬৯তম মিনিটে ইসকোর জায়গায় লুকা ইয়োভিচকে নামান জিদান। মাঠে নামার কয়েক সেকেন্ডের মাঝে গোল প্রায় পেয়েই যাচ্ছিলেন সার্বিয়ান এই স্ট্রাইকার। বেলের দারুণ ক্রসে তার হেড ফিরে ক্রসবারে লেগে। ৭৮তম মিনিটে দারুণ একটি সুযোগ হাতছাড়া করেন গুয়ার্দিওলা। নাচো মার্তিনেসের ক্রসে ঠিক মতো পা ছোঁয়াতে পারেননি বিপজ্জনক জায়গায় থাকা ভাইয়াদলিদের এই ফরোয়ার্ড। চার মিনিট পর রিয়ালকে এগিয়ে নেন বেনজেমা। ডি-বক্সের ভেতরে ঢুকে কোনাকুনি শটে জাল খুঁজে নেন এই ফরাসি স্ট্রাইকার। লা লিগায় এটি তার দেড়শতম গোল। ৮৮তম মিনিটে ব্যর্থ হননি গুয়ার্দিওলা। টনি ক্রুস মাঝ মাঠে বল হারালে অস্কার প্লানো বল বাড়ান গুয়ার্দিওলাকে। বেশ কয়েকটি সুযোগ হাতছাড়া করা ফরোয়ার্ড এবার থিবো কর্তোয়াকে ফাঁকি দিয়ে খুঁজে নেন জাল। গত সপ্তাহে প্রথম রাউন্ডে সেল্তা ভিগোকে ৩-১ গোলে হারিয়েছিল রিয়াল। অন্য দিকে নিজেদের প্রথম ম্যাচে রিয়াল বেতিসকে হারিয়েছিল ভাইয়াদলিদ।

শ্রীলঙ্কাকে গোল বন্যায় ভাসিয়ে দ্বিতীয় জয় বাংলাদেশের

ক্রীড়া প্রতিবেদক ॥ শ্রীলঙ্কাকে গোল বন্যায় ভাসিয়ে দিয়েছে বাংলাদেশ। ছেলেদের সাফ অনূর্ধ্ব-১৫ চ্যাম্পিয়নশিপে তুলে নিয়েছে টানা দ্বিতীয় জয়। ভারতের কলকাতার কল্যাণী স্টেডিয়ামে রোববার ৭-১ গোলে জিতেছে বাংলাদেশ। একাই পাঁচ গোল করেছেন আল আমিন রহমান। অপর দুই গোলদাতা রাকিবুল ইসলাম ও আল মিরাদ। ভুটানকে ৫-২ গোলে উড়িয়ে প্রতিযোগিতার মুকুট ধরে রাখার মিশন শুরু করেছিল মোস্তফা আনোয়ার পারভেজের দল। আগের দিনই বাংলাদেশ কোচ জানিয়েছিলেন শ্রীলঙ্কার বিপক্ষে আক্রমণাত্মক খেলবে দল। শুরু থেকে মিরাদ-আল আমিনরা টানা আক্রমণে প্রতিপক্ষের রক্ষণে কাঁপন ধরালেও কাঙ্খিত গোল পাচ্ছিল না। অবশেষে ৩২তম মিনিটে মেলে গোলের দেখা। সতীর্থের পাস পেয়ে ডি-বক্সে ঢুকে গোলকিপার থারুসা রাশমিকার পাশ দিয়ে বল জালে জড়িয়ে দেন আল আমিন। ১০ মিনিট পর একাধিক ডিফেন্ডারকে কাটিয়ে ডি-বক্সে ঢুকে প্লেসিং শটে ব্যবধান দ্বিগুণ করেন বাংলাদেশ অধিনায়ক রাকিবুল। বিরতিতে যাওয়ার এক মিনিট আগে বাংলাদেশ তৃতীয় গোলের দেখা পায়। সতীর্থের পাস পেয়ে ডি-বক্সে ঢুকে কোনাকুনি শটে নিজের দ্বিতীয় গোলটি করেন আল আমিন। দ্বিতীয়ার্ধের শুরুতেই অপূর্ব মালির চমৎকার থ্রো-ইনে হেডে স্কোরলাইন ৪-০ করেন ফরোয়ার্ড আল মিরাদ। দুই মিনিট পর নিজেদের ভুলে গোল হজম করে বাংলাদেশ। এক ডিফেন্ডার হেডে ঠিকমতো বল ক্লিয়ার করতে ব্যর্থ হলে শ্রীলঙ্কার ফরোয়ার্ড ইনসান মোহাম্মদ মিহরান প্লেসিং শটে ব্যবধান কমান। তাতে ম্যাচের চিত্র অবশ্য একটুও পাল্টায়নি। একের পর এক আক্রমণ করতে থাকা বাংলাদেশ ৫৯তম মিনিটে পেনাল্টি থেকে আরও একটি গোল পায়। হ্যাটট্রিক পূরণ হয় আল আমিনের। ৬৭তম মিনিটে ব্যবধান আরও বাড়ানোর তিন মিনিট পর প্রতিপক্ষের কফিনে শেষ পেরেকটি ঠুকে দেন আল আমিন। ভুটানকে হারিয়ে প্রতিযোগিতা শুরু করা শ্রীলঙ্কা এ নিয়ে টানা দ্বিতীয় ম্যাচ হারল। নিজেদের দ্বিতীয় ম্যাচে নেপালের কাছে ২-০ গোলে হেরেছিল তারা। আগামীকাল মঙ্গলবার নিজেদের তৃতীয় ম্যাচে নেপালের মুখোমুখি হবে বাংলাদেশ।

 

রেকর্ডবুকে জয়া-সালমা

ক্রীড়া প্রতিবেদক ॥ এক সময় খেলোয়াড় হিসেবে ফুটবল মাঠ দাঁপিয়ে বেড়িয়েছেন জয়া চাকমা। পেশাদারি ফুটবল থেকে অবসরের পর ২০১০ সালে রেফারিংকে ক্যারিয়ার হিসেবে বেছে নেন বাংলাদেশের নারী ফুটবলের ইতিহাসের অন্যতম সেরা এই তারকা। রেফারি হিসেবে দ্রুত উন্নতি করতে থাকেন তিনি। অদম্য সাহস আর প্রেরণা নিয়ে রেফারি হিসেবে অতিক্রম করেছেন একের পর এক বাধা। লেবেল ৩, ২ ও ১ কোর্স সম্পন্ন করে জাতীয় পর্যায়ের রেফারি হয়েছেন অনেক আগেই। আর এবার তিনি সাফল্যের সঙ্গে পার হলেন ফিফা রেফারি হওয়ার ফিটনেস টেস্ট। জয়ার সঙ্গেই ফিফা রেফারি হওয়ার ফিটনেস টেস্টে উত্তীর্ণ হয়েছেন আরেক বাংলাদেশি নারী সালমা ইসলাম মনি। বাংলাদেশের প্রথম নারী হিসেবে ফিফাভুক্ত রেফারি হওয়ার যোগ্যতা অর্জন করেছেন তারা। গত শনিবার এ সুখবর পান জয়া ও সালমা। ফিফার কাছ থেকে আনুষ্ঠানিক স্বীকৃতি পেলে এই দুজন আগামী ২০২০ সাল পর্যন্ত আন্তর্জাতিক পর্যায়ে জাতীয় দলের ম্যাচ পরিচালনা করতে পারবেন। গত শুক্রবার বঙ্গবন্ধু জাতীয় স্টেডিয়ামে ফিফার নির্দেশনা অনুযায়ী রেফারি হওয়ার ফিটনেস টেস্ট দেন জয়া চাকমা ও সালমা ইসলাম মনি। নির্দিষ্ট সময়ের মধ্যে দুজনকেই পাড়ি দিতে হয়েছে ৪ হাজার মিটার পথ। পাশাপাশি দিতে হয়েছে আরো বেশ কিছু কঠিন পরীক্ষা। আর যাবতীয় সব পরীক্ষাতেই সাফল্যের সঙ্গে উত্তীর্ণ হয়েছেন তারা। এ বিষয়ে বাংলাদেশ ফুটবল ফেডারশনের (বাফুফে) রেফারিজ কমিটির ডেপুটি চেয়ারম্যান ইব্রাহিম নেসার জানান, ফিফার পরীক্ষায় জয়া ও সালমা দুজনই পাস করেছেন। আমরা এখন তাদের নাম ফিফায় পাঠাব। এই দুজনের ফিফার তালিকাভুক্ত রেফারি হতে আর কোনো বাধা নেই। এদের মধ্যে জয়া প্রধান রেফারির দায়িত্ব পালন করবেন। আর সহকারী রেফারি হিসেবে দায়িত্ব পালন করবেন সালমা। জয়া চাকমার এ পর্যায়ে উঠে আসার পেছনের গল্পটা বেশ অনুপ্রেরণাদায়ক। এর আগে আরো দুইবার পরীক্ষা দিয়েও কাঙ্খিত ফল পাননি তিনি। তবে দুইবার ব্যর্থ হয়েও দমে যাননি রাঙ্গামাটি থেকে উঠে আসা এই নারী ফুটবলার। প্রতিনিয়ত যুদ্ধ করেছেন নিজের সঙ্গে। পণ করেছিলের ফিফা রেফারি হওয়ার। নিজের স্বপ্ন পূরণের পথে ছিলেন অবিচল। সেই গল্প শোনাতে গিয়ে জয়া বলেন, ২০১৩ সালে বয়সভিত্তিক আন্তর্জাতিক ম্যাচ পরিচালনা করতে প্রথমবারের মতো শ্রীলঙ্কা গিয়েছিলাম। সেখানে গিয়ে দেখি বিভিন্ন দেশের নারী রেফারিরা আছেন। কিন্তু আমাদের দেশে সেভাবে কেউ উঠে আসছে না। তখন থেকেই নিজের মধ্যে জিদ চেপে বসে। পণ করি যেভাবেই হোক আমাকে ফিফার রেফারি হতেই হবে। সাফল্যের চূড়ায় উঠতে তখন থেকেই পরিশ্রম করে যাচ্ছিলাম। আর অবশেষে ফিফা রেফারি হওয়ার পরীক্ষায় উত্তীর্ণ হলাম। বর্তমানে দক্ষিণ এশিয়ায় সব মিলিয়ে চারজন ফিফার তালিকাভুক্ত নারী রেফারি আছেন। এদের মধ্যে ভারতের দুজন। আর নেপাল ও ভুটানের একজন করে। আর এবার এ তালিকায় নাম লেখানোর যোগ্যতা অর্জন করলেন জয়া ও সালমা। রাঙ্গামাটির মেয়ে জয়াকে অলরাউন্ডারই বলা যায়। খেলার পাশাপাশি পড়ালেখাও চালিয়ে গেছেন সমানতালে। জাহাঙ্গীরনগর বিশ্ববিদ্যালয় থেকে ইতিহাসে মাস্টার্স করেছেন তিনি। এ ছাড়া স্পোর্টস সায়েন্সের ওপর ডিপ্লোমা ডিগ্রিও আছে তার। জয়ার মতো সালমাও দীর্ঘ এক দশক ধরে অক্লান্ত পরিশ্রম চালিয়ে যাওয়ার পর উত্তীর্ণ হয়েছেন ফিফা রেফারি হওয়ার পরীক্ষায়। তিনিও দারুণ খুশি। নিজের অভিব্যক্তি জানাতে গিয়ে সালমা বলেন, আমার বিশ্বাশই হচ্ছে না। অনেক সাধনার পর অবশেষে সব পরীক্ষায় উত্তীর্ণ হলাম। আমি খুব খুশি।

শ্রীলঙ্কার টি-টোয়েন্টি দলে নেই ম্যাথিউস-থিসারা

ক্রীড়া প্রতিবেদক ॥ বিশ্ব জুড়ে টি-টোয়েন্টি লিগগুলোয় এখনও থিসারা পেরেরাকে নিয়ে আগ্রহ আছে বেশ। তবে আপাতত তার প্রতি আস্থা নেই নিজ দেশে। ফর্ম হারিয়ে এই অলরাউন্ডার জায়গা হারিয়েছেন শ্রীলঙ্কার টি-টোয়েন্টি দলে। নিউ জিল্যান্ডের বিপক্ষে টি-টোয়েন্টি সিরিজের দলে জায়গা পাননি অভিজ্ঞ ব্যাটসম্যান অ্যাঞ্জেলো ম্যাথিউস ও পেসার সুরাঙ্গা লাকমলও। ওয়ানডেতে সাম্প্রতিক সময়ে দুর্দান্ত ফর্মে আছেন ম্যাথিউস। তবে টি- টোয়েন্টির সঙ্গে তার ব্যাটিংকে মানানসই মনে করা হচ্ছে না বলে জায়গা পাননি সাবেক অধিনায়ক। টি-টোয়েন্টি দলে জায়গা হয়নি নিউ জিল্যান্ডের বিপক্ষে চলতি টেস্টে সেঞ্চুরি করা ধনাঞ্জয়া ডি সিলভারও। ওয়ানডে থেকে অবসরে যাওয়া লাসিথ মালিঙ্গা যথারীতি আছেন টি-টোয়েন্টি দলের নেতৃত্বে। সহ-অধিনায়ক মনোনীত হয়েছেন কিপার-ব্যাটসম্যান নিরোশান ডিকভেলা। আগামী টি-টোয়েন্টি বিশ্বকাপের দিকে তাকিয়ে তারুণ্য নির্ভর দল গড়েছে শ্রীলঙ্কা। দলে ৩০ বছরের বেশি বয়সী ক্রিকেটার আছেন কেবল দ্ইুজন, অধিনায়ক মালিঙ্গা ও পেসার ইসুরু উদানা। বোলিং অ্যাকশন প্রশ্নবিদ্ধ হওয়ার পর নিষেধাজ্ঞার শঙ্কায় থাকা স্পিনার আকিলা দনাঞ্জয়া আছেন দলে। জায়গা পেয়েছেন ইমার্জিং দলের হয়ে এখন বাংলাদেশ সফরে থাকা স্পিনিং অলরাউন্ডার ভানিদু হাসারাঙ্গা। তিন ম্যাচ সিরিজের সবকটি ম্যাচ হবে পালে¬কেলেতে, প্রথমটি হবে ১ সেপ্টেম্বর। শ্রীলঙ্কা টি-টোয়েন্টি দল : লাসিথ মালিঙ্গা (অধিনায়ক), নিরোশান ডিকভেলা (সহ-অধিনায়ক), আভিশকা ফার্নান্দো, কুসল পেরেরা, দানুশকা গুনাথিলাকা, কুসল মেন্ডিস, শেহান জয়াসুরিয়া, দাসুন শানাকা, ভানিদু হাসারাঙ্গা, আকিলা দনাঞ্জয়া, লাকশান সান্দাক্যান, ইসুরু উদানা, কাসুন রাজিথা, লাহিরু কুমারা, লাহিরু মাদুশাঙ্কা।

৬৭ রানে শেষ ইংল্যান্ড

ক্রীড়া প্রতিবেদক ॥ জফরা আর্চারের আগুনে বোলিংয়ে হেডিংলি টেস্টের প্রথমদিনেই ১৭৯ রানে গুটিয়ে গিয়েছিল অস্ট্রেলিয়ার প্রথম ইনিংস। তখন কে ভেবেছিল, দুইশ’র নিচে অলআউট হয়েও প্রথম ইনিংসে ১১২ রানের লিড পাবে সফরকারীরা! গতির জবাব শুক্রবার গতিতেই দিল অস্ট্রেলিয়া। তাতে বিধ্বস্ত ইংল্যান্ডের ব্যাটিং। শুক্রবার অ্যাশেজের তৃতীয় টেস্টের দ্বিতীয়দিনে জশ হ্যাজলউডের বিধ্বংসী বোলিংয়ে ইংল্যান্ডের প্রথম ইনিংস গুঁড়িয়ে যায় মাত্র ৬৭ রানে। সিরিজে ১-০ ব্যবধানে পিছিয়ে থাকা স্বাগতিকরা টিকতে পারে মাত্র ২৭.৫ ওভার। রানের হিসাবে টেস্টে এটি ইংল্যান্ডের ১২তম সর্বনিম্ন ইনিংস। আর্চারের ছয় উইকেটের জবাব হ্যাজলউড দিলেন ৩০ রানে পাঁচ উইকেট নিয়ে। দ্বিতীয় ইনিংসে ব্যাটিংয়ে নেমে অস্ট্রেলিয়াও অবশ্য স্বস্তিতে নেই। এ প্রতিবেদন লেখা পর্যন্ত ১৫ ওভারে অস্ট্রেলিয়ার সংগ্রহ ছিল তিন উইকেটে ৫২ রান। ফিরে গেছেন ডেভিড ওয়ার্নার, মার্কাস হ্যারিস ও উসমান খাজা। সাত উইকেট হাতে রেখে অস্ট্রেলিয়ার লিড তখন ১৬৪ রান। ম্যাচে এখন পর্যন্ত ২৩ উইকেটের ২২টিই গেছে পেসারদের ঝুলিতে। আগেরদিন কয়েক দফায় বৃষ্টি বাগড়া দিলেও শুক্রবার ঝলমলে রোদ উঠেছিল লিডসের আকাশে। কিন্তু ইংল্যান্ডের মেঘলা ব্যাটিংয়ের সুবাদে উইকেট পড়ল বৃষ্টির মতোই। অস্ট্রেলিয়ার পেস আক্রমণের সামনে লড়াই করতে পারেননি কেউই। সর্বোচ্চ ১২ রান করা জো ডেনলি ছাড়া দুই অঙ্ক ছুঁতে পারেননি একজনও। পেসারদের দাপটের ম্যাচে ইংলিশদের আসল সর্বনাশ করেছেন হ্যাজলউড। ১০ রানের মধ্যে তিনি ফিরিয়ে দেন জেসন রয় ও জো রুটকে। এরপর প্যাটিনসনের জোড়া আঘাতে বেন স্টোকস ও ডেনলি ফেরার আগে প্যাট কামিন্সের প্রথম শিকারে পরিণত হন ররি বার্নস। লাঞ্চের আগেই হ্যাজলউডের তৃতীয় শিকার জনি বেয়ারস্টো। ৪৫ রানে নেই ছয় উইকেট। আর কোনো উইকেট না হারিয়ে ৫৪ রানে লাঞ্চ বিরতিতে যায় ইংল্যান্ড। লাঞ্চের পর স্বাগতিকদের গুটিয়ে দিতে অস্ট্রেলিয়ার লাগে মাত্র চার ওভার। বাটলারের পর শেষ ব্যাটসম্যান জ্যাক লিচকে ফিরিয়ে টেস্টে নিজের সপ্তম পাঁচ উইকেট পূর্ণ করেন হ্যাজলউড। ধ্বংসযজ্ঞে তাকে যোগ সঙ্গ দেয়া কামিন্স তিনটি ও প্যাটিনসন নেন দুই উইকেট।

অনুশীলনে মিরাজের আঙুলে চোট

ক্রীড়া প্রতিবেদক ॥ মিরপুর শেরেবাংলা জাতীয় ক্রিকেট স্টেডিয়ামে অনুশীলনের সময় আঙুলে চোট পেয়েছেন মেহেদী হাসান মিরাজ। তার আঙুলে এক্স-রে করানো হয়েছে। মিরাজের চোটের বিষয়ে জানতে চাইলে বাংলাদেশ ক্রিকেট বোর্ডের (বিসিবি) প্রধান চিকিৎসক দেবাশীষ চৌধুরী শনিবার বিকালে বলেন, ওর হাতের তর্জনি আঙুলে চোট পেয়েছে। এক্স-রে করানো হয়েছে, রিপোর্ট পজেটিভ। হাড়ে কোনো সমস্যা হয়নি। আমরা দুদিন ওকে দেখব, তারপর বলতে পারব কি করতে হবে। আগে থেকেই পিঠে চোট ছিল মোহাম্মদ সাইফউদ্দিনের। বিশ্বকাপে সেই চোট আরও মারাত্মক আকার ধারণ করে। চোটের কারণে সবশেষ শ্রীলংকা সিরিজে খেলতে পারেননি জাতীয় দলের এ পেসার। বিসিবি যাচ্ছে তরুণ অলরাউন্ডার সাইফউদ্দিনকে ইংল্যান্ডে পাঠিয়ে ভালো কোনো চিকিৎসকের পরামর্শ নিতে। এ ব্যাপারে বিসিবির প্রধান চিকিৎসক বলেন, আমরা সাইফউদ্দিনের ব্যাপারে ইংল্যান্ডের ডাক্তারকে মেইল করেছি। ওনারা এখনও পজেটিভ কিছু জানাননি। আশা করছি আজ কালের মধ্যে ইংল্যান্ড থেকে পজেটিভ কোনা সাড়া পাব। আগামী ৫ সেপ্টেম্বর থেকে চট্টগ্রামে আফগানিস্তানের বিপক্ষে শুরু হবে একমাত্র টেস্ট। এরপর জিম্বাবুয়ে-আফগানিস্তানের সঙ্গে হবে টি-টোয়েন্টি সিরিজ। ঘরের মাঠে অনুষ্ঠিতব্য এই দুটি সিরিজকে সামনে রেখে মিরপুরে অনুশীলন ক্যাম্প করছে জাতীয় দল। আর সেই ক্যাম্পে অনুশীলনের সময় শনিবার আঙুলে চোটপান জাতীয় দলের নিয়মিত ক্রিকেটার অলরাউন্ডার মেহেদী হাসান মিরাজ।

 

বেল রিয়ালেই থাকছে – জিদান

ক্রীড়া প্রতিবেদক ॥ গ্যারেথ বেলের দল-বদলের সম্ভাবনা নিয়ে চলা অনেক গুঞ্জনের ইতি টানলেন জিনেদিন জিদান। স্পেনের সফলতম দলটির কোচ জানালেন, চলতি মৌসুমে রিয়াল মাদ্রিদেই থাকছেন ওয়েলসের এই ফরোয়ার্ড। জিদান মনে করেন, দীর্ঘদিন ধরে নিজেকে খুঁজে ফেরা এই ফুটবলারকে ‘সে যে সেরা’ তা প্রমাণ করতে হবে। অনেক দিন ধরে বেলের দল-বদলের সম্ভাবনা নিয়ে গুঞ্জন চলছিল। গত মৌসুম শেষে তা নতুন মাত্রা পায়। গত মাসে জিদান নিজেও তেমনই ইঙ্গিত দিয়েছিলেন। তবে এবার বললেন ভিন্ন কথা; জানালেন রিয়ালে থাকছেন বেল। “পরিস্থিতি যা পাল্টেছে তা হলো এই খেলোয়াড় থাকছে।” গত শনিবার এবারের লা লিগায় নিজেদের প্রথম ম্যাচে সেল্তা ভিগোর মাঠে ৩-১ গোলের জয়ে শুরুর একাদশে সুযোগ পেয়ে দারুণ খেলেন বেল। তার পারফরম্যান্সে ভীষণ খুশি কোচ। “গুরুত্বপূর্ণ বিষয় হলো, এই খেলোয়াড় থাকতে চায়। এটা সত্যি যে তার বিষয়ে অনেক কিছু বলা হয়েছিল, আমিও বলেছিলাম। তবে সে থাকছে।” “সে দারুণ খেলোয়াড়। আগে সে তা দেখিয়েছে এবং তাকে আবারও তা দেখাতে হবে। তাকে সেই খেলোয়াড় হতে হবে আমরা তার বিষয়ে যেমনটা জানি।” ২০১৩ সালে ওই সময়ের রেকর্ড ট্রান্সফার ফি সাড়ে আট কোটি পাউন্ডে টটেনহ্যাম হটস্পার থেকে রিয়ালে যোগ দিয়ে দলটির হয়ে চারটি চ্যাম্পিয়ন্স লিগ, একটি করে লা লিগা ও কোপা দেল রে এবং তিনটি করে উয়েফা সুপার কাপ ও ক্লাব বিশ্বকাপ শিরোপা জিতেছেন বেল। দলটির সঙ্গে ২০২২ সাল পর্যন্ত চুক্তি রয়েছে তার। তবে সান্তিয়াগো বের্নাবেউয়ে অধিকাংশ সময়েই চোট সমস্যায় ভুগেছেন বেল। আর এ কারণে গত চার মৌসুমে লা লিগায় মাত্র ৭৯ ম্যাচে শুরুর একাদশে সুযোগ পেয়েছেন তিনি। গত মৌসুমে দলটির হয়ে সব প্রতিযোগিতা মিলিয়ে ৪২ ম্যাচে খেলেন বেল। তবে মাঝে মধ্যে দলের সমর্থকদেরই দুয়োর মুখে পড়তে হয়েছিল ৩০ বছর বয়সী এই ফরোয়ার্ডকে।

আর্চারের আগুনে বোলিংয়ে পুড়ল অস্ট্রেলিয়ান ব্যাটিং

ক্রীড়া প্রতিবেদক ॥ দিনভর বৃষ্টি ঝরেছে থেমে থেমে। জফরা আর্চারের বোলিংয়ের আগুন তাতে নেভেনি। বৃষ্টির ফাঁকে যখনই খেলা হয়েছে, সময়ের আলোচিত এই ফাস্ট বোলার যেন তোপ দেগেছেন। সঙ্গে অভিজ্ঞ স্টুয়ার্ট ব্রড দেখিয়েছেন সুইংয়ের জাদু। তাতে বিধ্বস্ত অস্ট্রেলিয়ান ব্যাটিং। এই দুজনের দুর্দান্ত বোলিংয়ের সামনে লড়াই করতে পেরেছেন কেবল ডেভিড ওয়ার্নার ও মার্নাস লাবুশেন। অ্যাশেজের হেডিংলি টেস্টের প্রথম দিনের প্রথম দুই সেশনে ছিল বৃষ্টির দাপট। শেষ সেশনের শুরুটা ওয়ার্নার-লাবুশেন করেছিলেন দুর্দান্ত। কিন্তু পরে আর্চারের বিধ্বংসী বোলিং গুঁড়িয়ে দিয়েছে অস্ট্রেলিয়ার ব্যাটিং। প্রথম ইনিংসে গুটিয়ে গেছে তারা ১৭৯ রানেই। এক পর্যায়ে অস্ট্রেলিয়ার রান ছিল ২ উইকেটে ১৩৬। আর্চারের খুনে বোলিংয়ে শেষ ৮ উইকেট হারিয়েছে তারা ৪৩ রানের মধ্যে। প্রথম দুই টেস্টে প্রায় ঘুমিয়ে থাকা ওয়ার্নারের ব্যাট জেগে উঠেছে কিছুটা। বাঁহাতি ওপেনার করেছেন ৬১ রান। এই উইকেটসহ আর্চার নিয়েছেন আরও পাঁচ উইকেট। টেস্ট জগতে বহুল আলোচিত পদার্পণে ৫ উইকেটের স্বাদ পেলেন দ্বিতীয় টেস্টেই। গতিময় ও আগ্রাসী বোলিংয়ে সব মিলিয়ে ৪৫ রানে নিয়েছেন ৬ উইকেট। জাদুকরী এক ডেলিভারিতে ট্রাভিস হেডকে ফেরানো ব্রড নিয়েছেন দুই উইকেট। ওয়ার্নারের পর অস্ট্রেলিয়ার আশা হয়ে ছিলেন লাবুশেন। আগের টেস্টে ছিলেন তিনি ‘সুপার সাব।’ স্টিভেন স্মিথের ‘কনকাশন’ বদলি হিসেবে দ্বিতীয় ইনিংসে ব্যাটিংয়ের সুযোগ পেয়ে করেছিলেন ম্যাচ বাঁচানো ফিফটি। এই টেস্টে স্মিথের বিশ্রামই লাবুশেনকে সুযোগ করে দিয়েছে একাদশে। ২৫ বছর বয়সী অলরাউন্ডার আবারও বিপর্যয়ে দাঁড়িয়ে দলকে টেনেছেন ৭৪ রানের ইনিংসে। ওয়ার্নার ও লাবুশেনের জুটিতে এসেছে ১১১ রান। আর কোনো জুটি স্পর্শ করতে পারেনি ২৫ রানও। ফিফটি করা এই দুই ব্যাটসম্যান ছাড়া দু অঙ্ক ছুঁয়েছেন আর কেবল টিম পেইন, ১১! সকালে বৃষ্টির জন্য খেলা শুরু হয় সোয়া ১ ঘণ্টা দেরিতে। পেস সহায়ক কন্ডিশনে টস জিতে বোলারদের হাতে বল তুলে দেন জো রুট। ইংলিশ অধিনায়ককে হতাশ করেননি তার নতুন বলের দুই বোলার। প্রথম সেশনে খেলা হয়েছে কেবল চার ওভার। প্রথম ব্রেক থ্রু আসে এর মধ্যেই। আগের দুই টেস্টে ব্যর্থ ক্যামেরন ব্যানক্রফটের জায়গায় সুযোগ পেয়ে মার্কাস হ্যারিস ফিরেছেন ৮ রানেই। আর্চারের দুর্দান্ত ডেলিভারির জবাব ছিল না বাঁহাতি বাটসম্যানের। বৃষ্টিতে দ্বিতীয় সেশনেও খেলা হতে পেরেছে কেবল ১৪ ওভার। এই সেশনে অস্ট্রেলিয়া হারায় তিনে নামা উসমান খাওয়াজার উইকেট। ওয়ার্নার ও লাবুশেনের ব্যাটে শুরুর সেই ধাক্কা দারুণভাবে সামাল দিয়েছিল অস্ট্রেলিয়া। শুরুতে একটু নড়বড়ে থাকলেও ওয়ার্নার ছন্দ খুঁজে পান পরে। লাবুশেন ছিলেন দারুণ গোছানো ও মনোযোগী। চা বিরতির পরে প্রথম ঘণ্টায় এক পর্যায়ে ১১ ওভারেই ৭০ রান তুলে ফেলেন দুজন। জুটি পেরিয়ে যায় শতরান।

সেখান থেকে ইংলিশদের ম্যাচে ফেরান আর্চার। এই জুটি ভাঙেন আরেকটি দুর্দান্ত ডেলিভারিতে। ৯৪ বলে ৬১ রান করে ওয়ার্নার ক্যাচ দেন উইকেটের পেছনে। জুটি ভাঙার পর ভেঙে পড়ে অস্ট্রেলিয়ার ব্যাটিং লাইন আপ। অসাধারণ এক সুইঙ্গিং ডেলিভারিতে হেডকে শূন্য রানে ফেরান ব্রড। আর্চারকে ঠিকমতো খেলতে না পেরে ম্যাথু ওয়েডও ফেরেন শূন্যতে। ইংলিশদের দুর্দান্ত বোলিং অন্যদের কাবু করলেও লাবুশেন খেলছিলেন দারুণ নির্ভরতায়। কিন্তু তার দারুণ ইনিংসটি শেষ হলো বিস্ময়করভাবে। বেন স্টোকসের স্টাম্প সোজা ফুলটসে লাইন মিস করে হয়ে গেলেন এলবিডব্লিউ। আর্চার-ব্রডের দুর্দান্ত বোলিংয়ের দিনে স্টোকস ও ক্রিস ওকস ছিলেন না নিজেদের সেরা চেহারায়। তার পরও স্টোকসের মতো একটি উইকেটের দেখা পেয়েছেন ওকস। আর অস্ট্রেলিয়ার ব্যাটিংয়ের লেজ মুড়িয়ে দিয়ে আর্চার মাতিয়েছেন হেডিংলির গ্যালারি। সংক্ষিপ্ত স্কোর: অস্ট্রেলিয়া ১ম ইনিংস: ৫২.১ ওভারে ১৭৯ (ওয়ার্নার ৬১, হ্যারিস ৮, খাওয়াজা ৮, লাবুশেন ৭৪, হেড ০, ওয়েড ০, পেইন ১১, প্যাটিনসন ২, কামিন্স ০, লায়ন ১, হেইজেলউড ১*; ব্রড ১৪-২-৩২-২, আর্চার ১৭.১-৩-৪৫-৬, ওকস ১২-৪-৫১-১, স্টোকস ৯-০-৪৫-১)।

সাকিবকে ছাড়িয়ে মাইলফলকের সামনে তাইজুল

ক্রীড়া প্রতিবেদক ॥ বিশ্বসেরা অলরাউন্ডার সাকিব আল হাসানকে ছাড়িয়ে দেশের প্রথম বোলার হিসেবে দ্রুততম ১০০ উইকেট শিকারের রেকর্ড গড়ার পথে তাইজুল ইসলাম। জাতীয় দলের এ অফ স্পিনার ইতিমধ্যে ২৪ টেস্টে ৯৯ উইকেট শিকার করেছেন। দ্রুততম ১০০ উইকেট শিকারের মালিক হতে তার প্রয়োজন আর মাত্র ১ উইকেট। বাংলাদেশের বোলারদের মধ্যে টেস্টে সবচেয়ে দ্রুততম (২৮ টেস্টে) ১০০ উইকেট শিকারের রেকর্ড গড়েছেন সাকিব। তাকে ছাড়িয়ে যেতে তাইজুলের প্রয়োজন মাত্র ১ উইকেট। ক্যারিয়ারের ২৫তম টেস্টেই এই রেকর্ড গড়ার পথে তাইজুল। আগামী ৫ সেপ্টেম্বর চট্টগ্রামে আফগানিস্তানের বিপক্ষে একমাত্র টেস্টে এই মাইলফলক স্পর্শ করতে পারেন তাইজুল। তবে টেস্ট ক্রিকেটের ইতিহাসে দ্রুততম (মাত্র ১৬ ম্যাচে) একশ উইকেট শিকার করেছেন ইংল্যান্ডের সাবেক পেসার জর্জ লোহম্যান। তিনি আঠারশ’ শতকে এই রেকর্ড গড়েছেন। যা আজও অক্ষত আছে। সাকিবকে ছাড়িয়ে মাইলফলকের সামনে দাঁড়িয়ে থাকা বাঁহাতি স্পিনার তাইজুল গতকাল শুক্রবার মিরপুরে অনুশীলন শেষে বলেন, আসলে খেলার সময় এসব রেকর্ডের বিষয় মাথায় থাকে না। যখন মাঠে নামি এক উইকেটের জন্য নামি না। নামলে ৫-৬ উইকেট পেতেই নামি। এক উইকেট নিয়ে চিন্তা করছি না। কপালে থাকলে হবে। আমি চিন্তা করছি ভালো বোলিং করে দলকে কীভাবে সহায়তা করা যায়।

 

আইপিএলে ব্যাঙ্গালুরুতে হেসন, ক্যাটিচ

ক্রীড়া প্রতিবেদক ॥ ভারত জাতীয় ক্রিকেট দলের কোচ হতে না পারার এক সপ্তাহ পর শুক্রবার ইন্ডিয়ান প্রিমিয়ার লীগের(আইপিএল) দল রয়্যাল চ্যালেঞ্জার্স ব্যাঙ্গালুরুর (আরসিবি) ক্রিকেট ডিরেক্টর নিয়োগ পেলেন নিউজিল্যান্ডের মাইক হেসন। টি-২০ ফ্র্যাঞ্চাইজি লীগে বিশ্বের সবচেয়ে জনপ্রিয় এ টুর্নামেন্টের কখনো শিরোপা জিততে না পারা ব্যাঙ্গালুরুর প্রধান কোচের দায়িত্ব পেলেন অস্ট্রেলিযার সাবেক ব্যাটসম্যান সাইমন ক্যাটিচ। দক্ষিণ আফ্রিকা ও ভারতীয় জাতীয় দলের সাবেক কোচ গ্যারি কার্স্টেনের স্থলাভিষিক্ত হলেন ক্যাটিচ। আরসিবি এক বিবৃতিতে জানায়,‘ প্রধান কোচ হিসেবে সাইমন ক্যাটিচ দলে হাই পারফরমেন্সের সংস্কৃতি গড়ে তুলবেন।’ হেসনের দায়িত্ব হবে ‘পলিসি নির্ধারন, কৌশল, কর্মসুচি, স্কাউটিং, পারফরমেন্স ম্যানেজমেন্ট এবং আরসিবির ক্রিকেটে সব বিষয়ে সেরা ধারা আনা’ বলে বিবৃতিতে উল্লেখ করা হয়। ৪৪ বছর বয়সী হেসন ২০১২ ও ২০১৮ সালে নিউজিল্যান্ড জাতীয় দলের কোচের দায়িত্ব পালন করেন। ভারতীয় জাতীয় দলের কোচ হওযার দৌঁড়ে অল্পের জন্য রবি শাস্ত্রির কাছে হেরে যান তিনি। গত শুক্রবার শাস্ত্রিকে ২০২০ এবং ২০২১ টি-২০ বিশ্বকাপ পর্যন্ত শাস্ত্রিকে কোচ হিসেবে পুন:নিয়োগ দেয় ভারতীয় ক্রিকেট বোর্ড। দুই বছর দায়িত্ব পালন শেষে কার্স্টেনের সঙ্গে বোরিং কোচের চাকুরি হারাচ্ছেন সাবেক ভারতীয় পেসার আশিষ নেহরাও। বিরাট কোহলির নেতৃত্বাধীন আরসিবি এবারের আসরে পয়েন্ট তালিকায় আট দলের মধ্যে সবার নিচে তেকে টুর্নামেন্ট শেষ করে। শিরোপা জয় করে মুম্বাই ইন্ডিয়ান্স।

ইউভেন্তুসের পরের দুই ম্যাচে থাকছেন না কোচ সাররি

ক্রীড়া প্রতিবেদক ॥ নিউমোনিয়ায় আক্রান্ত কোচ মাওরিসিও সাররি সেরি আয় দলের পরের দুই ম্যাচে ডাগ আউটে থাকবেন না বলে জানিয়েছে ইউভেন্তুস। গত রোববার ত্রাইয়েসতিনার বিপক্ষে প্রীতি ম্যাচেও মাঠে ছিলেন না সাররি। প্রাথমিকভাবে ৬০ বছর বয়সী এই ইতালিয়ান ফ্লুতে আক্রান্ত হয়েছেন বলে ধারণা করা হয়েছিল। শনিবার বাংলাদেশ সময় রাত দশটায় সেরি আয় নিজেদের পরের ম্যাচে পার্মার মুখোমুখি হবে ইউভেন্তুস। পরের সপ্তাহে খেলবে নাপোলির বিপক্ষে। এ দুটি ম্যাচে ডাগ আউটে থাকবেন না সাররি। এক বিবৃতিতে সাররি ভালোভাবে সেরে উঠছেন বলে জানিয়েছে ইউভেন্তুস। তার আরও পরীক্ষা-নিরীক্ষা করা হবে বলেও জানানো হয়েছে। এ বছরের জুনে ইউভেন্তুসকে টানা পাঁচ মৌসুম সেরি আ জেতানো কোচ মাস্সিমিলিয়ানো আল্লেগ্রির উত্তরসূরি হিসেবে দায়িত্ব নেন সাররি।

বাংলাদেশের পেসারদের নিয়ে ল্যাঙ্গেভেল্টের পরিকল্পনা

ক্রীড়া প্রতিবেদক ॥ সব ফরম্যাটে দেশের বাইরে ভালো করতে পারে-এমন গভীরতা সম্পন্ন পেস ইউনিট তৈরি করতে চান বাংলাদেশের নতুন বোলিং কোচ চার্ল ল্যাঙ্গেভেল্ট। তার মতে, উপমহাদেশের দল যে কোনো কন্ডিশনে প্রভাব বিস্তার করতে পারবে, যদি তাদের একটি ‘কোর ফাস্ট বোলিং গ্র“প’ থাকে। ভারতীয় পেসারদের উদাহরণ টেনে তিনি বলেন, কোর ফাস্ট বোলিং ইউনিট গঠনের মাধ্যমে এখন দক্ষিণ আফ্রিকা, অস্ট্রেলিয়া ও ইংল্যান্ডের মাটিতে টেস্ট জিতছে ভারত। সব কন্ডিশনে অদম্য দল তৈরি করতে বাংলাদেশেরও কোর ফাস্ট বোলিং গ্র“প গঠনে মনোযোগ দেব আমি। গত বুধবার মিরপুরে সংবাদ সম্মেলনে ল্যাঙ্গেভেল্ট বলেন, ওয়ানডেতে নতুন বলে ভালো করাটা গুরুত্বপূর্ণ। যে কোনো কন্ডিশনে টেস্টেও এটি গুরুত্বপূর্ণ। আসন্ন লংগার ভার্সনের ম্যাচটি আমার জন্য হবে পেসার খুঁজে বের করার মিশন। তাদের চাই, যারা দেশের বাইরেও ভালো বল করতে পারবে। টাইগার পেসারদের একটি সমস্যা রয়েছে। তারা বাউন্স করার মতো যথেষ্ট লম্বা নয়। তবে এটিরও সমাধান রয়েছে ল্যাঙ্গেভেল্টের কাছে। তিনি বলেন, লম্বা না হলে ছেলেদের দিয়ে এমন বোলিং করানো কঠিন। তবে ইনজুরিগ্রস্ত না হলে বিকল্প পথে হাঁটতে হবে। সেটি হচ্ছে সুইং বোলিং। তারা যাতে সুইং করতে পারে সে জন্য আমি সহায়তা করব। কেউ যদি সুইং না করেই ধারাবাহিক হতে চায়, তা হলে লাইন-লেন্থ ঠিক রেখে আক্রমণাত্মক হতে হবে। এটিই হচ্ছে আসল। কিংবদন্তি পেসার কোর্টনি ওয়ালশের পরিবর্তে টাইগারদের বোলিং কোচের দায়িত্ব পেয়েছেন ল্যাঙ্গেভেল্ট। দক্ষিণ আফ্রিকার সাবেক পেসার বলেন, আমার দর্শন ওয়ালশের চেয়ে আলাদা। তিনি একজন কিংবদন্তি বোলার ছিলেন। স্বাভাবিকভাবেই কোচিংয়ের ক্ষেত্রে তার আর আমার দর্শন আলাদা। আমার রয়েছে আলাদা পরিকল্পনা। মেধার ভিত্তিতে আমি ক্রমে সবাইকে সহায়তা করব। ইয়র্কার ও বাউন্সারে ফাস্ট বোলারদের জন্য স্বল্প সময়ের কোনো পরিকল্পনা আছে কিনা? ল্যাঙ্গেভেল্ট বলেন, আমার বিশ্বাস- আমি ভিন্ন পন্থায় তাদের সহায়তা করতে পারব। বোলিং কোচ হিসেবে আমাকে বল দিয়েই এগিয়ে যেতে হবে। চাপ মোকাবেলা করতে হবে, ভালো করার চেষ্টা করতে হবে, অনুশীলনে বল করতে হবে, কাজ অব্যাহত রাখতে হবে- এসব করলেই ইয়র্কার আয়ত্তে আসবে। আমি সবসময় বলে থাকি- পেস বোলিংয়ে পরিবর্তন ঘটাতে চাইলে, ইয়র্কার-বাউন্সার মারার সক্ষমতা থাকতে হবে।

ভারত সিরিজের আগে আফগানিস্তান টেস্টকে প্রস্তুতির মঞ্চ হিসেবে দেখছেন মোমিনুল

ক্রীড়া প্রতিবেদক ॥ ভারতের বিপক্ষে দুই ম্যাচের টেস্ট সিরিজের জন্য প্রস্তুতির অংশ হিসেবে বাংলাদেশ আফগানিস্তানের বিপক্ষে একটি টেস্ট ম্যাচে অংশ নিবে। এরপর ভারতের বিপক্ষে সিরিজ দিয়ে টাইগাররা আইসিসি টেস্ট চ্যাম্পিয়নশীপে যাত্রা করবে। সিরিজটি বাংলাদেশের জন্য কঠিন হবে বলেই মনে করা হচ্ছে। কারণ ভারতের এমন কিছু বিশ্ব মানের স্পিনার রয়েছে যারা নিজেদের মাটিতে যে কোন দলকেই ভড়কে দিতে পারে। তবে টেস্ট বিশেষজ্ঞ হিসেবে পরিচিতি পাওয়া বাংলাদেশ দলের মিডল অর্ডার ব্যাটসম্যান মোমিনুল হক বলেন, আফগানিস্তানের সঙ্গে এই টেস্ট ম্যাচটি হতে পারে ভারতীয় স্পিন মোকাবেলার জন্য একটি ভাল প্রস্তুতি। মোমিনুলের মতে, আফগানিস্তানও বিশ্বসেরা স্পিন আক্রমণকারী দলগুলোর একটি। যাদের স্পিন আক্রমণে রয়েছেন রশিদ খান, মোহাম্মদ নবী, মুজিব-উর-রহমানসহ বেশ ক’জন বিশ্বমানের খেলোয়াড়। উল্লেখিত তিন স্পিনার ইতোমধ্যে ইন্ডিয়ান প্রিমিয়ার লীগে (আইপিএল) নিজেদের দক্ষতা প্রদর্শন করেছেন। তবে সেটা সীমিত ওভারের ক্রিকেটে। টেস্টে এখনো পর্যন্ত ভাল কিছু দেখাতে না পারলেও এই তিন স্পিনার বাংলাদেশের সামনে বিপজ্জনক হয়ে উঠতে পারে বলে মনে করেন মোমিনুল। তিনি গতকাল মিরপুর শেরে বাংলা জাতীয় ক্রিকেট স্টেডিয়ামে অনুশীলন শেষে সাংবাদিকদের বলেন, ‘টেস্ট চ্যাম্পিয়নশীপকে সামনে রেখে আফগানিস্তানের বিপক্ষে টেস্টটি হচ্ছে আমাদের জন্য ভাল প্রস্তুতির মঞ্চ। আমাদের সবার জন্যই এটি ভাল সুযোগ। আমাদের উচিত এটিকে ভাল ভাবে কাজে লাগানো। আশা করি এই টেস্ট ম্যাচটি উপভোগ্য হবে।’ যে কোন প্যারামিটারেই আফগানিস্তানের বিপক্ষে বাংলাদেশ অবশ্যই ফেভারিট। দীর্ঘ ফর্মেটের এই ক্রিকেটে বাংলাদেশ নাজুক অবস্থানে খাকা সত্ত্বেও নিজেদের মাটিতে নিজেদের মত করে গড়া পিচে নিয়মিতভাবেই টেস্ট জয় করে আসছে টাইগাররা।

এদিকে গত বছর মর্যাদা পাওয়ার পর এটি হবে আফগানিস্তানের তৃতীয় টেস্ট। প্রথম টেস্টে তারা ভারতের কাছে হেরে গেলেও এক সঙ্গে স্ট্যাটাস পাওয়া আয়ারল্যান্ডের বিপক্ষে দ্বিতীয় টেস্টেই জয় পেয়েছে আফগানিস্তান। আফগানিস্তানের স্পিন বাংলাদেশের বিপক্ষে বিপজ্জনক হতে পারে বলে আশংকা প্রকাশ করে মোমিনুল আসন্ন টেস্টে কোন রকম নিশ্চয়তা দিতে চান না। তার মতে আফগান স্পিনাররা প্রভাব বিস্তার করতে পারে টাইগার ব্যাটসম্যানদের উপর। তিনি বলেন, ‘আফগানিস্তানের স্পিন আক্রমন বিশ্ব মানের। তাদের স্পিনারদের বিপক্ষে এই টেস্টটি আমাদের কাছে হবে ভারত সিরিজের ভাল প্রস্তুতি। তবে আমরা জানি উপমহাদেশে তাদের স্পিন আক্রমণ কত ভয়ঙ্কর।’ টেস্ট চ্যাম্পিয়নশীপের আয়োজনে সন্তোষ প্রকাশ করে মোমিনুল বলেন, এর ফলে বাংলাদেশ নিয়মিতভাবে খেলার সুযোগ পাবে এবং এই ভার্সনে র‌্যাংকিংয়ের উন্নতি ঘটাতে পারবে। তিনি বলেন, ‘আমাদের ক্রিকেটের জন্য টেস্ট চ্যাম্পিয়নশীপ ভাল হয়েছে। এ জন্য আমি ব্যক্তিগতভাবে খুশি এবং টুর্নামেন্টটি নিয়ে রোমঞ্চিত। বিভিন্ন কারণে অতীতে আমরা খুব বেশি টেস্ট ম্যাচ খেলতে পারিনি। তবে এই টুর্নামেন্ট আমাদেরকে নিয়মিত টেস্ট খেলার সুযোগ করে দিয়েছে। এটি আমাদের ক্রিকেটের জন্য আসলেই ভাল দিক। আপনি যদি বেশি করে টেস্ট ম্যাচ খেলতে পারেন, তাহলে এই খেলায় উন্নতি করার সুযোগ পাবেন। আর সেটি করতে পারলে আমরা আমাদের টেস্ট র‌্যাংকিংয়েরও উন্নতি ঘটাতে পারব। আশা করি টেস্ট চ্যাম্পিয়নশীপে আমরা ভাল একটি সুচনা করতে পারব।’

 

রোনালদোর অবসর ভাবনা

ক্রীড়া প্রতিবেদক ॥ বয়স পেরিয়ে গেছে ৩৪ বছর। তবে ধার কমেনি একটুও। সাফল্যমন্ডিত ক্যারিয়ারে এগিয়ে যেতে চান আরও বহুদূর। আবার আগামী বছরও বুট জোড়া তুলে রাখতে পারেন বলে জানালেন পর্তুগিজ ফরোয়ার্ড ক্রিস্তিয়ানো রোনালদো। সম্প্রতি পর্তুগালের এক টেলিভিশন চ্যানেলকে দেওয়া সাক্ষাৎকারে ক্যারিয়ারের বিভিন্ন বিষয় নিয়ে খোলামেলা কথা বলেন পর্তুগিজ ফরোয়ার্ড। কবে নাগাদ অবসর নিতে পারেন-সে বিষয়ে নিশ্চিত করে এখনও কিছু ভাবেননি বলে জানান ইউভেন্তুসের এই ফরোয়ার্ড। “আগামী বছর আমি আমার ক্যারিয়ারের ইতি টানতে পারি। কিন্তু আমি ৪০, ৪১ বছর বয়স পর্যন্তও খেলতে পারি। আমি জানি না। তবে আমি এটা জানি যে আপনাকে সবসময় মুহূর্তটা উপভোগ করতে হবে। বর্তমানটা চমৎকার এবং আমি এটা উপভোগ করি।” পাঁচবারের বর্ষসেরা ফুটবলার রোনালদো ইংল্যান্ড, স্পেন ও ইতালিতে অনেক শিরোপা জিতেছেন। ম্যানচেস্টার ইউনাইটেড ও রিয়াল মাদ্রিদের সাবেক এই খেলায়াড় চ্যাম্পিয়ন্স লিগের ইতিহাসে রেকর্ড ১২৬ গোল করেছেন। রিয়ালের হয়ে টানা তিন বছরে চ্যাম্পিয়ন্স লিগ জিতে ২০১৮ সালে ইউভেন্তুসে যোগ দেন রোনালদো। প্রথম মৌসুমেই ক্লাবটির হয়ে সর্বোচ্চ গোল করার পাশাপাশি সেরি আর মৌসুম সেরা খেলোয়াড়ের পুরস্কার পান তিনি। তুরিনের ক্লাবটিতে খেলা উপভোগ করছেন বলেও জানান পর্তুগালের সর্বোচ্চ গোলদাতা। “আমার আকর্ষনীয় প্রকল্প দরকার এবং ইউভেন্তুস এর অন্যতম। আমি সবসময় এই দলটিকে পছন্দ করেছি। ইতালিতে তারা সেরা দল এবং বিশ্বের অন্যতম সেরা।” “ইউরোপে নিজেদের প্রতিষ্ঠিত করতে তারা সবসময় লড়াই করেছে। আর ইংল্যান্ড ও স্পেনে জেতার পর আমি ইতালিতেও জিতেছি এবং আমি এখানে খুশি।”

ফিওরেন্তিনায় রিবেরি

ক্রীড়া প্রতিবেদক ॥ বায়ার্ন মিউনিখের সাবেক উইঙ্গার ফ্রাঙ্ক রিবেরি ফ্রি ট্রান্সফারে ফিওরেন্তিনায় যোগ দিয়েছেন। জার্মান ক্লাবটিতে ১২ বছর খেলার পর গত মৌসুম শেষে ‘ফ্রি এজেন্ট’ হয়ে যান রিবেরি। বায়ার্নের অনেক সাফল্যের কারিগর ফরাসি এই উইঙ্গার দলটির হয়ে ১০০ এর বেশি গোল করেছেন। ২০০৭ সালে মার্সেই থেকে বুন্ডেসলিগার ক্লাবটিতে যোগ দিয়ে আটটি বুন্ডেসলিগা ও একটি চ্যাম্পিয়ন্স লিগসহ অনেক শিরোপা জিতেন ৩৬ বছর বয়সী রিবেরি। নতুন ঠিকানায় এসে ইতালিয়ান ক্লাব ফিওরেন্তিনার ওয়েবসাইটকে রিবেরি বলেন, “আমি উচ্ছ্বসিত। একসঙ্গে মিলে কিছু অর্জন করতে হবে।”

জুভেন্টাসও চায় নেইমারকে

ক্রীড়া প্রতিবেদক ॥ নেইমারকে পিএসজি থেকে ফিরিয়ে আনার চেষ্টা গত দুই মাস ধরেই চালিয়ে যাচ্ছে বার্সেলোনা। সম্প্রতি রিয়াল মাদ্রিদও নেইমারকে দলে টানার লড়াইয়ে যোগ দিয়েছে। এবার দুই স্প্যানিশ জায়ান্টের প্রতিদ্বন্দ্বী হিসেবে মঞ্চে হাজির জুভেন্টাস! দলবদলের মাত্র দুই সপ্তাহ বাকি থাকতে নেইমারের দিকে হাত বাড়িয়ে নাটক আরও জমিয়ে দিল সেরি-এ চ্যাম্পিয়নরা। দু’বছর আগে বার্সেলোনা থেকে নেইমারকে ভাগিয়ে আনতে রেকর্ড ২২২ মিলিয়ন ইউরো গুনতে হয়েছিল পিএসজিকে।

তাকে বিক্রি করার সময়ও মোটামুটি একই পরিমাণ অর্থ চাইছে ফরাসি চ্যাম্পিয়নরা। পিএসজির এই চাহিদার কারণে রিয়ালের আগ্রহে কিছুটা ভাটা পড়েছে। নেইমার নিজেও রিয়ালে যেতে চান না। তিনি বার্সায় ফিরতে উদগ্রীব। কিন্তু অতীতের তিক্ততার কারণে নেইমারকে পেতে পিএসজির মন গলাতে পারছে না বার্সা। পিএসজি প্রথম থেকেই সাফ জানিয়ে দিয়েছে, নেইমারের বিনিময়ে বার্সার কাছ থেকে তারা শুধুই অর্থ চায়। চুক্তিতে কোনো খেলোয়াড় অন্তর্ভুক্ত করতে তারা রাজি নয়। কিন্তু এ মৌসুমে প্রায় ২৫০ মিলিয়ন ইউরো খরচ করে ফেলার পর এখন নগদ অর্থে নেইমারকে কেনার মতো অবস্থায় নেই স্প্যানিশ চ্যাম্পিয়নরা। শেষ চেষ্টা হিসেবে ব্রাজিলীয় তারকাকে আপাতত এক বছরের জন্য ধারে আনার কথা ভাবছে বার্সা। স্থায়ী চুক্তি হবে আগামী বছর। কিন্তু এএসপিএনের খবর বলছে, বার্সার এই প্রস্তাবেও রাজি নয় পিএসজি। জুভেন্টাসের প্রস্তাবটা নাকি বেশি মনে ধরেছে তাদের। নেইমারের বিকল্প হিসেবে জুভেন্টাসের আর্জেন্টাইন ফরোয়ার্ড পাওলো দিবালাকে পেতে আগ্রহী পিএসজি। এ সুযোগটাই নিতে চায় জুভেন্টাস। শোনা যাচ্ছে, নেইমারের জন্য দিবালার পাশাপাশি ১০০ মিলিয়ন ইউরো দিতে রাজি জুভেন্টাস। আর নেইমারকে রাজি করাতে বছরে ৩৭ মিলিয়ন ইউরো বেতনের লোভনীয় টোপ দিয়েছে তারা। এখন দেখা যাক, নেইমার-নাটকের শেষ অঙ্কে কী চমক অপেক্ষা করছে।

দলে ফিরতে মুখিয়ে আছেন সাইফউদ্দিন

ক্রীড়া প্রতিবেদক ॥ আফগানিস্তানের সঙ্গে টেস্ট ও ত্রিদেশীয় টি- টোয়েন্টি সিরিজ সামনে রেখে কন্ডিশনিং ক্যাম্পে ৩৫ জনকে ডেকেছে বিসিবি। পুরনোদের পাশাপাশি এতে আছে একঝাঁক নতুন মুখ। কিন্তু এ ক্যাম্পে বিশ্বকাপে দলের অন্যতম সেরা পারফরমার হয়েও মোহাম্মদ সাইফউদ্দিনের নাম নেই। ৩৫ জনের দলে সাইফউদ্দিনের নাম না থাকায় তার ভক্তরা রীতিমতো অবাক। অনেকের চোখ কপালেও উঠেছে। প্রাথমিক দলে সাইফউদ্দিন যে ভীষণ প্রত্যাশিত নামতা বলার অপেক্ষা রাখে না। তাই তার নাম না থাকাটা কিছুটা অবাক করার মতোই। শ্রীলংকা সিরিজে বাংলাদেশের ওপর চরম ব্যথর্তার ঝড় গেছে। ইনজুরির কারণে ওই সফরের দিন দুয়েক আগে অধিনায়ক মাশরাফির সঙ্গে দল থেকে ছিটকে পড়েন সাইফউদ্দিন। আসছে সিরিজের প্রাথমিক দলে মাশরাফি থাকলেও নেই সাইফউদ্দিন। এতেই ক্রিকেট পাড়ায় গুঞ্জন ওঠে- তবে কি ঝড়ের ছোঁয়া সাইফউদ্দিনের ওপর দিয়েও গেল কিনা; নাকি ইনজুরি থেকে এখনও সেরে উঠেননি তিনি। এ নিয়ে ছোট্ট ধোঁয়াশা তৈরি হতে না হতেই কন্ডিশনিং ক্যাম্পে যোগ দেন সাইফ। ভক্তদের আশাবাদী হওয়ার মতো বার্তা দিয়ে তরুণ অলরাউন্ডার জানান, পেশাদার খেলোয়াড় হিসেবে আমাদের কাজই খেলা। আর আমি খেলার জন্য মুখিয়েই আছি। সে জন্য ফিট থাকাও আবশ্যক। বোর্ডের চিকিৎসকের ছক বাধা রুটিনেই ইনজুরি থেকে সেরে ওঠার প্রক্রিয়া চলছে বেশ কিছুদিন ধরে। আলহামদুলিল্লাহ এখন কিছুটা ভালো অনুভব করছি।’ দীর্ঘদিন কোমরের জটিল রোগে ভুগছেন সাইফউদ্দিন। বিশ্বকাপ চলাকালীন সেটি আরও বেড়ে যায়। পরে শ্রীলংকা সিরিজের প্রস্তুতি চলাকালীন আবারও সেটি দেখা দেয়।

শ্রীলংকাকে হারিয়ে সিরিজে সমতা আনলো বাংলাদেশ এইচপি

ক্রীড়া প্রতিবেদক ॥ ইয়াসির আলী ও নাজমুল হোসেন শান্তর জোড়া হাফ সেঞ্চুরিতে ভর করে সফরকারী শ্রীলংকা হাই পারফরমেন্স (এইচপি) দলকে দ্বিতীয় ওয়ানডেতে আজ ২ উইকেটে হারিয়েছে বাংলাদেশ এইচপি দল। বিকেএসপি’র এক নম্বর মাঠে এই জয়ে তিন ম্যাচ সিরিজে সমতা আনতে সক্ষম হলো বাংলাদেশ দল। বাংলাদেশ দলের এই জয়ের ফলে তিন ম্যাচ সিরিজের তৃতীয় ও শেষ ম্যাচটি এখন অঘোষিত ফাইনালে পরিণত হলো। আগামী ২৪ আগস্ট খুলনার শেখ আবু নাসের স্টেডিয়ামে অনুষ্ঠিত হবে সিরিজের শেষ ম্যাচটি। প্রথম ম্যাচে সফরকারীদের কাছে ১৮৬ রানের বড় ব্যবধানে পরাজিত হয়েছিল স্বাগতিকরা। ম্যাচ শুরুর আগে ২০০৪ সালের ২১ আগস্ট গ্রেনেড হামলায় আহত-নিহতদের স্মরণে এক মিনিট নীরবতা পালন করে উভয় দলের খেলোয়াড়রা। প্রথমে ব্যাট করতে নেমে দলের পক্ষে সর্বোচ্চ কামিন্দু মেন্ডিজের ৬৫রানে ভর করে ৪৯.৪ ওভারে ২৭৩ রানে গুটিয়ে যায় লংকান দলটি। দলের পক্ষে দ্বিতীয় সর্বোচ্চ ৫৫ রান করেন ওপেনার পদুন নিশানকা। ৫৭ বল মোকাবেলায় আটটি বাউন্ডারি হাকান তিনি। এছাড়া শেষ দিকে জেহান ডেনিয়েল করে ৪৩ বলে ৪১ রান। প্রথমবারের মত সম্প্রতি জাতীয় দলের কন্ডিশনিং ক্যাম্পে ডাক পাওয়া পেসার শফিকুল ইসলাম বাংলাদেশ এইচপি দলের হয়ে ৫১ রানে ৩ উইকেট শিকার করেন। নাইম হাসান ৩৫ রানে নেন ২ উইকেট। জবাবে তিনটি চার এবং পাঁচটি ওভার বাউন্ডারিতে ৯৩ বল মোকাবেলায় ইয়াসির আলীর ৮৫ এবং ৭৭ বলে শান্তর ৮৮ রানের সুবাদে ৪৯.৩ ওভারে ২৭৪ রানে জয় নিশ্চিত হয় স্বাগতিকদের। ওপেনার সাইফ হাসান করেন ২৭ রান।

শিরান ফার্নান্দো এবং জেহার ড্যানিয়েল শ্রীলংকা এইচপির পক্ষে ২টি করে উইকেট নেন।

 

ক্রিকেটের প্রতি বাংলাদেশের জনগণের আবেগ আমাকে আকৃষ্ট করেছে – ডোমিঙ্গো

ক্রীড়া প্রতিবেদক ॥ ক্রিকেটের প্রতি বাংলাদেশের জনগণের প্রবল আবেগ ও ভালবাসা রাসেল ডোমিঙ্গোকে এতটাই আকৃষ্ট করেছে যে, এ দেশকে নিজের বাড়ি হিসেবে মেনে নিতে এক সেকেন্ডও সময় নেননি। জাতীয় দলের প্রধান কোচ হিসেবে ডোমিঙ্গোর নাম ঘোাষণাকালে বাংলাদেশ ক্রিকেট বোর্ড (বিসিবি) সভাপতি নাজমুল হাসান পাপন বলেছিলেন, টাইগার দলের তদারকি করার জন্য দক্ষিণ আফ্রিকানের উৎসাহই বাছাইয়ে অন্যদের চেয়ে এগিয়ে রেখেছে। পাপনের বক্তব্যে কারো সন্দেহ থাকলেও, বাংলাদেশী গণমাধ্যমের সঙ্গে নবনিযুক্ত কোচ ডোমিঙ্গোর প্রথম আনুষ্ঠানিক সংবাদ সম্মেলনের বক্তব্যের পর আর সেটা থাকবে না। দক্ষিণ আফ্রিকার সাবেক এ কোচ বলেন, ক্রিকেটের প্রতি বাংলাদেশের জনগণের প্রবল আবেগ তিনি দেখেছেন মূলত সেটিই তাকে এখানে আসতে উদ্বুদ্ধ করেছে। বাঙালি কতটা ক্রিকেট পাগল জাতি ডোমিঙ্গো তার প্রমাণ পান ২০০৪ সালে প্রথমবার বাংলাদেশ সফরে। এরপর আরো ছয়বার তিনি বাংলাদেশ সফর করেন এবং প্রতিবারই ক্রিকেটের প্রতি বাংলাদেশী জনগণের আবেগের প্রমাণ পান। ডোমিঙ্গোর নিজের ভাষায়, বিশ্বের কোথাও তিনি ক্রিকেট নিয়ে এক উন্মাদনা দেখেননি এবং দক্ষিণ আফ্রিকায় এমনটা কল্পনারও বাইরে। সংবাদ সম্মেলনে আজ ডোমিঙ্গো বলেন, ‘এই নিয়ে সপ্তমবার আমি বাংলাদেশে এলাম। প্রথমবার এসেছিলাম ২০০৪ সালে অনুর্ধ-১৯ বিশ্বকাপে, আজ থেকে প্রায় ১৫ বছর আগে।’ ‘বাংলাদেশের জনগণ ক্রিকেটকে কতটা ভালবাসে- প্রতিবারই আমি একই চিত্র দেখেছি। আপনি দক্ষিণ আফ্রিকায় দেখবে একটা সংবাদ সম্মেলনে বড় জোড় আট থেকে নয় জন সাংবাদিক উপস্থিত থাকে। আমার জীবনে একটা সংবাদ সম্মেলনে আমি কখনো এত সাংবাদিক দেখিনি। আমি বিমান বন্দরে নেমে এত বেশি সাংবাদিক দেখেছি, যা সত্যিই অবিশ্বাস্য’ উল্লেখ করেন তিনি। সবশেষে তিনি বলেন, ‘ক্রিকেটর প্রতি বাংলাদেশের মানুষেল এই যে আবেগ এটা আমি সব সময় লক্ষ্য করেছি। আপনি দেখেছেন মাঠে বাঘের পোশাক পড়া দর্শকের উপস্থিতি সব সময় অবশ্যই দলের সমর্থনের জন্য অনেক বড় ফ্যাক্টর। সম্ভবত এটাই আমাকে এখানে আসতে অনুপ্রাণীত করেছে।’

 

উইলিয়ামসন-ধনঞ্জয়ার বোলিং অ্যাকশন সন্দেহজনক

ক্রীড়া প্রতিবেদক ॥ নিউজিল্যান্ড অধিনায়ক কেন উইলিয়ামসন ও শ্রীলংকার স্পিনার আকিলা ধনঞ্জয়ার বোলিং অ্যাকশন সন্দেহজনক। স্বাগতিক শ্রীলংকা ও নিউজিল্যান্ডের মধ্যকার গল টেস্ট শেষে এক ক্রিকেটের প্রধান সংস্থা ইন্টারন্যাশনাল ক্রিকেট কাউন্সিলের (আইসিসি) পক্ষ থেকে এ কথা জানানো হয়েছে। শ্রীলংকার বোলিং বিভাগের গুরুত্বপূর্ণ স্পিনার ধনঞ্জয়া। পুরো ম্যাচে ৬২ ওভার বল করে ৫ উইকেট শিকার করেন তিনি। আর পার্ট-টাইম বোলার হিসেবে তিন ওভার বোলিং করেন উইলিয়ামসন। মঙ্গলবার এক বিবৃতিতে আইসিসি জানায়, ‘ম্যাচ অফিসিয়ালদের রিপোর্ট উভয় দলের খেলোয়াড়দের কাছে হস্তান্তর করা হয়েছে। দু’খেলোয়াড়ের বোলিং অ্যাকশন নিয়ে উদ্বেগ প্রকাশ করা হয়েছে। উইলিয়ামসন ও ধনঞ্জয়া রিপোর্টের ১৪ দিনের মধ্যে বোলিং অ্যাকশনের পরীক্ষা দিবেন। পরীক্ষার ফলাফল আসার আগ পর্যন্ত আন্তর্জাতিক ক্রিকেটে দু’জন বোলিং করতে পারবেন।’ গেল বছরের নভেম্বরে এই ভেন্যুতেই ইংল্যান্ডের বিপক্ষে এক টেস্টে বোলিং অ্যাকশন নিয়ে সন্দেহের তালিকায় পড়েছিলেন ধনঞ্জয়া। পরে বোলিং অ্যাকশন শুধরে ফিরেছেন তিনি। কিন্তু আবারও সন্দেহজনক বোলিং অ্যাকশনের দাগ গায়ে পড়লো ধনঞ্জয়ার। আগামী বৃহস্পতিবার কলম্বোতে শুরু হবে দুই টেস্ট সিরিজের দ্বিতীয় ও শেষ ম্যাচ।