রাজশাহী ওয়াসার ভূ-উপরিস্থিত পানি শোধনাগারসহ ১৭ প্রকল্প অনুমোদন

ঢাকা অফিস ॥ রাজশাহী ওয়াসার ভূ-উপরিস্থিত পানি শোধনাগারসহ ১৭ প্রকল্পের চূড়ান্ত অনুমোদন দিয়েছে জাতীয় অর্থনৈতিক পরিষদের নির্বাহী কমিটি (একনেক)। এসব প্রকল্প বাস্তবায়নে মোট ব্যয় ধরা হয়েছে ১৪ হাজার ২০০ কোটি ৫৯ লাখ টাকা। এর মধ্যে সরকারি তহবিল থেকে ১১ হাজার ১৯৩ কোটি ৬৯ লাখ টাকা, বাস্তবায়নকারী সংস্থার নিজস্ব তহবিলের ২ হাজার ৮১১ কোটি ৬২ লাখ টাকা এবং বৈদেশিক সহায়তা থেকে পাওয়া যাবে ১৯৫ কোটি ২৮ লাখ টাকা। গতকাল বৃস্পতিবার রাজধানীর শেরেবাংলানগর এনইসি সম্মেলন কক্ষে একনেক চেয়ারপারসন ও প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার সভাপতিত্বে অনুষ্ঠিত একনেক বৈঠকে এসব প্রকল্পের অনুমোদন দেয়া হয়। বৈঠকশেষে পরিকল্পনামন্ত্রী আ হ ম মুস্তাফা কামাল সাংবাদিকদের ব্রিফ করেন। তিনি বলেন, বর্তমানে রাজশাহী মহানগরের পানি সরবরাহের কাভারেজ ৭১ শতাংশ এবং রাজশাহী ওয়াসা মোট পানি উৎপাদনে ৯৬ শতাংশ ভূ-গর্ভস্থ পানি ব্যবহার করে। ভূ-গর্ভস্থ উৎস্য হতে অস্বাভাবিক পানি উত্তোলনের ফলে ভূ-গর্ভস্থ পানির স্থিতিতল প্রতি বছর শূন্য দশমিক ৫ থেকে ১ মিটার নীচে নেমে যাচ্ছে। ফলে ভূ-গর্ভস্থ পানির উপর বিরূপ প্রভাব তৈরি হচ্ছে। তিনি বলেন, তাই রাজশাহী মহানগরীর পানির কভারেজ ৭১ শতাংশ হতে ১০০ শতাংশ উন্নীতকরণের জন্য চীন সরকারের আর্থিক সহায়তায় জি টু জি ভিত্তিতে ভূ-উপরিস্থ পানি শোধনাগার নির্মাণের জন্য এই প্রকল্পটি অনুমোদন দেওয়া হয়েছে। তিনি জানান, প্রকল্পের সুফল নিশ্চিত করতে প্রধানমন্ত্রী রাজশাহী সিটি করপোরেশন এলাকার বাইরেও পানি সরবরাহ করার নির্দেশনা দিয়েছেন। রাজশাহী ওয়াসার ভূ-উপরিস্থিত পানি শোধনাগার নির্মাণ প্রকল্পের ব্যয় ধরা হয়েছে ৪ হাজার ৬২ কোটি ২২ লাখ টাকা। পরিকল্পনামন্ত্রী জানান, প্রধানমন্ত্রী চট্টগ্রাম অঞ্চলে পাহাড় কাটা বন্ধের নির্দেশ দিয়েছেন। তিনি বলেছেন, পাহাড় কাটার কারণে কোন মানুষ যেন মাটি চাপা পড়ে মারা না যায়। পরিকল্পনামন্ত্রী বলেন, ঢাকা শহরের সকল পরিচ্ছন্নতা কর্মীর বাসস্থানের ব্যবস্থা করা হবে। ঢাকা শহরে ৭ হাজার পরিচ্ছন্নতা কর্মীর মধ্যে ইতোমধ্যে ৩ হাজার কর্মীর বাসস্থানের ব্যবস্থা করা হয়েছে। আরো ১১’শ কর্মীর বাসস্থানের জন্য গতকাল ঢাকা সিটি কর্পোরেশনের পরিচ্ছন্নতা কর্মী নিবাস নির্মাণ প্রকল্পের অনুমোদন দেওয়া হয়েছে। এই প্রকল্প বাস্তবায়নে মোট ব্যয় হবে ২৫৪ কোটি ১০ লাখ টাকা। এক সপ্তাহে দু’টি একনেক সভা করা প্রসঙ্গে মুস্তাফা কামাল জানান, চলতি অর্থবছরে এই পর্যন্ত ১৪টি মঙ্গলবার পাওয়া গেছে। কিন্তু আজকেরটি নিয়ে ১০টি একনেক হচ্ছে। বাকি ৪ মঙ্গলবারের মধ্যে সরকারি ছুটি এবং প্রধানমন্ত্রী বিদেশে থাকায় একনেক করা সম্ভব হয়নি। তাই চলতি সপ্তাহে আজ আবার একনেক সভা হলো। তিনি বলেন, চলমান উচ্চ প্রবৃদ্ধির ধারা অব্যাহত রাখতে বেসরকারিখাতে যে বিনিয়োগ দরকার, সেটা এখন হচ্ছে না। তাই সরকারি বিনিয়োগ বাড়াতে বিভিন্ন উন্নয়ন প্রকল্পের অনুমোদন দেওয়া হচ্ছে। একনেকে অনুমোদন পাওয়া প্রকল্পসমূহ হলো- চট্টগ্রাম সিটি কর্পোরেশনের বিভিন্ন ওয়ার্ডে সড়ক নেটওয়ার্ক উন্নয়ন এবং বাস ট্রাক টার্মিনাল নির্মাণ প্রকল্পের খরচ ধরা হয়েছে ১ হাজার ২২৯ কোটি ৯৭ লাখ টাকা। ফরিদপুর-ভাঙ্গা-বরিশাল-পটুয়াখালী-কুয়াকাটা জাতীয় মহাসড়ক চার লেনে উন্নীতকরণের জন্য ভূমি অধিগ্রহণ প্রকল্পের খরচ ধরা হয়েছে ১ হাজার ৮৬৭ কোটি ৮৬ লাখ টাকা। বৈরাগীপুল (বরিশাল)-টুমচর-বাউফল (পটুয়াখালী) জেলা মহাসড়ক যথাযথ মান ও প্রশস্ততায় উন্নীতকরণ প্রকল্পের খরচ ধরা হয়েছে ৩০২ কোটি ১৬ লাখ টাকা। ব্যবসা বাণিজ্য সম্প্রসারণের লক্ষ্যেনন্দিগ্রাম (ওমরপুর)-তালোর-দুপচাঁচিয়া-জিয়ানগর-আক্কেলপুর গোপীনাথপুর জেলা মহাসড়ক এবং নন্দীগ্রাম (কাথম) কালিগঞ্জ-রাণীনগর জেলা মহাসড়ক যথাযথ মান ও প্রশস্ততায় উন্নীতকরণ প্রকল্পের খরচ ধরা হয়েছে ১৭৯ কোটি ২৩ লাখ টাকা। বিদ্যমান চত্বরে ১টি বহুতল অফিস ভবন নির্মাণ প্রকল্পের খরচ ধরা হয়েছে ৬৩ কোটি ৫৬ লাখ টাকা। বিদ্যুৎ বিতরণ ব্যবস্থার উন্নয়ন, চট্টগ্রাম জোন প্রকল্পের খরচ ধরা হয়েছে ২ হাজার ৫৫১ কোটি ৯১ লাখ টাকা। এছাড়া অন্যান্য প্রকল্প হলো-যশোর অঞ্চল গ্রামীণ অবকাঠামো উন্নয়ন প্রকল্পের ব্যয় হবে ৯৫২ কোটি ২৫ লাখ টাকা। খুলনা বাগেরহাট ও সাতক্ষীরা জেলার পল্লী অবকাঠামো উন্নয়ন প্রকল্পের খরচ ধরা হয়েছে ৯৩৭ কোটি ৯২ লাখ টাকা। বঙ্গবন্ধু দারিদ্র বিমোচন প্রশিক্ষণ কমপ্লেক্স (বর্তমান বাপার্ড), কোটালীপাড়া, গোপালগঞ্জ এর সম্প্রসারণ, সংস্কার ও আধুনিকায়ন প্রকল্পের খরচ ধরা হয়েছে ৩৪৪ কোটি ৭৪ লাখ টাকা। পরিবেশ বান্ধব কৌশলের মাধ্যমে নিরাপদ ফসল উৎপাদন প্রকল্পের খরচ ধরা হয়েছে ১৭২ কোটি ১৩ লাখ টাকা। বৃহত্তর ঢাকা জেলা সেচ এলাকা উন্নয়ন প্রকল্পের খরচ ধরা হয়েছে ১৩৬ কোটি ৭৩ লাখ টাকা। রংপুর জেলার মিঠাপুকুর, পীরগাছা, পীরগঞ্জ ও রংপুর সদর উপজেলায় যমুনেশ^রী, ঘাঘট ও করতোয়া নদীর তীর সংরক্ষণ ও নদী পুন:খনন প্রকল্পের খরচ ধরা হয়েছে ১৩৪ কোটি ৯৪ লাখ টাকা। উপকূলীয় চরাঞ্চলে সমন্বিত প্রাণী সম্পদ উন্নয়ন প্রকল্পের ব্যয় ধরা হয়েছে ৯৫ কোটি ৩৪ লাখ টাকা। দ্যা প্রজেক্ট ফর দ্যা ইমপ্র“ভমেন্ট অব রিসোর্স ক্যাপাসিটিজ ইন দ্যা কোস্টাল এন্ড ইনল্যান্ড ওয়াটারস প্রকল্পের খরচ ধরা হয়েছে ২৮৭ কোটি ১৩ লাখ টাকা। সার সংরক্ষণ ও বিতরণ সুবিধার জন্য দেশের বিভিন্ন জেলায় ১৩টি নতুন বাফার গোডাউন নির্মাণ প্রকল্পের খরচ ধরা হয়েছে ৬২৮ কোটি ৪০ লাখ টাকা।

কুষ্টিয়া সড়ক পরিবহণ আইন সংশোধনের দাবিতে জেলা বাস, মিনিবাস, কোচ ও মাইক্রোবাস শ্রমিক ইউনিয়নের মানববন্ধন

নিজ সংবাদ ॥ সড়ক পরিবহণ আইন আংশিক সংশোধনের দাবিতে কুষ্টিয়ায় মানববন্ধন কর্মসূচী পালন করেছে  জেলা বাস, মিনিবাস, কোচ ও মাইক্রোবাস শ্রমিক ইউনিয়ন। বৈরী আবহাওয়া উপেক্ষা করে গতকাল বৃহস্পতিবার সকালে শহরের মজমপুর গেটস্থ ইউনিয়ন অফিসের এ কর্মসূচী পালন করে তারা। এতে জেলার, বাস, ট্রাক, মাইক্রোবাসসহ বিভিন্ন পরিবহণের শ্রমিকরা ব্যানার ফেস্টুন নিয়ে অংশ নেয়। মানববন্ধনে বক্তারা বলেন, সড়কে দূর্ঘটনার জটিলতার মামলার তদন্ত কমিটিতে শ্রমিক ও মালিক প্রতিনিধিকে অন্তর্ভূক্ত করা এবং ড্রাইভিং লাইসেন্স পাওয়ার ক্ষেত্রে শিক্ষাগত যোগ্যতা ৮ম শ্রেনীর পরিবর্তে ৫ম শ্রেণী নির্ধারন করাসহ ৮দফা দাবিসহ সড়কে দূর্ঘটনাকে মামলার জামিন যোগ্য বিধান করার আহবান জানান। এছাড়াও শ্রমিকের দন্ডে ৫ লাখ টাকার পরিবর্তে ৫০ হাজার টাকা পর্যন্ত অর্থদন্ড বিধান যুক্ত করার দাবি জানান ও সড়ক দূর্ঘটনায় জটিলতার মামলায় তদন্ত কমিটিতে শ্রমিক ও মালিক প্রতিনিধিকে অর্ন্তভুক্ত করার দাবি জানান। এছাড়াও আলোচনার মাধ্যমে অন্যান্য আইন সংশোধনের উদ্যোগ নেওয়ার দাবি জানান। জেলা বাস, মিনিবাস, কোচ ও মাইক্রোবাস শ্রমিক ইউনিয়নের সভাপতি মাহবুল আলমের নেতৃত্বে মানববন্ধনে ইউনিয়নের নেতৃবৃন্দ উপস্থিত ছিলেন।

ভেড়ামারায় সাংবাদিকদের তথ্যমন্ত্রী হাসানুল হক ইনু

জনতার আদালতের পর আইনের আদালতে আবারও প্রমান হলো বিএনপি-জামায়াত রাজনৈতিক খুনিচক্র

ভেড়ামারা প্রতিনিধি ॥ তথ্যমন্ত্রী হাসানুল হক ইনু এমপি বলেছেন জনতার আদালতের পর আইনের আদালতে আবারও প্রমান হলো বিএনপি-জামায়াত রাজনৈতিক খুনিচক্র। মুক্তিযুদ্ধের পক্ষের শক্তি ও রাজনৈতিক প্রতিপক্ষকে শাররীকভাবে নিশ্চিহ্ন করাই বিএনপি-জামাতের রাজনীতি। বিএনপি-জামাত খুনিচক্রের সাথে ড. কামাল হোসেনের ওকালতি রাজনৈতিক বিশ্বাস ঘাতকতা। গতকাল বৃহস্পতিবার দুপুরে কুষ্টিয়ার ভেড়ামারার  গোলাপনগরস্থ নিজ বাসভবনে হিন্দুধর্মালম্বীদের, দলীয় নেতা-কর্মী ও প্রশাসনের কর্মকর্তাদের সাথে মতবিনিময় শেষে সাংবাদিকদের কাছে এমন মন্তব্য করেন। এসময় উপস্থিত ছিলেন জাসদ কেন্দ্রীয় সাংগঠনিক সম্পাদক আব্দুল আলীম স্বপন,  ভেড়ামারা উপজেলার নির্বাহী কর্মকর্তা সোহেল মারুফ, অফিসার ইনচার্জ আমিনুল ইসলাম, জাসদ নেতা বেনজির আহমেদ বেনুসহ দলীয় ও প্রশাসনের কর্মকর্তারা।

ভিডিও কনফারেন্সে কুষ্টিয়া পৌরসভার ২টিসহ দেশের ৩৩টি প্রকল্পের উদ্বোধনকালে প্রধানমন্ত্রী

গত দশ বছরে জনগণের জীবনমানের উন্নয়ন হয়েছে এবং দিনবদলের যাত্রা শুরু হয়েছে

ঢাকা অফিস ॥ বাংলাদেশ গত দশ বছরে ‘উন্নয়নের মহাসড়কে’ যে পথ পাড়ি দিয়েছে, তাকে ‘অসাধ্য সাধন’ বলেছেন প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা। গতকাল বৃহস্পতিবার গণভবন থেকে ভিডিও কনফারেন্সের মাধ্যমে ২০ জেলায় ৩৩টি প্রকল্পের উদ্বোধন করে প্রধানমন্ত্রী এমন মন্তব্য করেন। স্থানীয় সরকার প্রকৌশল অধিদপ্তরের অধীনে বাস্তবায়িত সাতটি সেতু একটি জেটি, নয়টি উপজেলা পরিষদের সম্প্রসারিত প্রশাসনিক ভবন ও হলরুম এবং ছয়টি নগর মাতৃসদন ভবন ও দশটি নগর স্বাস্থ্যকেন্দ্র উদ্বোধন করে প্রধানমন্ত্রী বলেন, “জাতির পিতার আদর্শ বুকে ধারণ করে নিজের জীবনকে উৎসর্গ করেছি।” তিনি বলেন, ২০০৮ সালে নবম জাতীয় সংসদ নির্বাচনের পর আওয়ামী লীগ নেতৃত্বাধীন মহাজোট সরকার ক্ষমতায় এসে দেশের উন্নয়নে ব্যাপক কর্মসূচি বাস্তবায়ন শুরু করে। সব দিক থেকে মানুষ যেন ভালোভাবে বাঁচতে পারে, সেই চেষ্টা তার সরকার করছে। এ অনুষ্ঠানে প্রধানমন্ত্রী দিনাজপুরের কান্তজিউ মন্দির সড়কে ডেপা নদীর ওপর ২২৮ মিটার দীর্ঘ সেতু, জামালপুরে ব্রহ্মপুত্র নদের ওপর ৫৬০ মিটার দীর্ঘ ‘শহীদ লেফটেন্যান্ট শেখ জামাল সেতু’ ও ‘শহীদ মেজর জেনারেল খালেদ মোশাররফ বীর উত্তম সেতু’, টাঙ্গাইলে ধলেশ্বরী নদীর ওপর ৫২০.৬০ মিটার দীর্ঘ ‘দেশরতœ জননেত্রী শেখ হাসিনা সেতু’, শ্রীপুর উপজেলায় ৩১৫ মিটার দীর্ঘ সেতু, মাদারীপুরে আড়িয়াল খাঁ নদের ওপর ৬৮৬.৭৫ মিটার দীর্ঘ ‘শেখ লুৎফর রহমান সেতু’ এবং নড়াইলে চিত্রা নদীর ওপর ‘শেখ রাসেল সেতুর’ উদ্বোধন করেন।

এছাড়া টেকনাফ-মিয়ানমার ট্রানজিট ঘাটে নির্মিত ৫৫০ মিটার দীর্ঘ জেটিরও উদ্বোধন করেন প্রধানমন্ত্রী। অনুষ্ঠানে তিনি বলেন,“আমি জানি না, পৃথিবীতে কোনো দেশ এত অল্প সময়ে এত উন্নতি সাধন করতে পারে কিনা। কিন্তু আমরা সেই অসাধ্য সাধন করতে পেরেছি।” এ অনুষ্ঠান থেকে প্রধানমন্ত্রী ঢাকার মিরপুর এক নম্বর সেকশনে, গাজীপুরের দক্ষিণ কোলার বাজারের ধীলাশ্রমে, রংপুরের পূর্ব খাসবাগে, কিশোরগঞ্জের হারুয়ায়, কুষ্টিয়ার মিলপাড়ায় ও গোপালগঞ্জ পৌরসভায় ছয়তলা নগর মাতৃসদন এবং গাজীপুরের নীলের পাড়ায়, কুমিল্লার কমলাপুর, বাউবন্দ ও রসুলপুরে, রংপুরের এরশাদ নগর ও জুমাপুড়ায়, কুষ্টিয়ার বারাদি ও বড়খাদায়, কিশোরগঞ্জের নুরানী ও তারাপাশায় তিনতলা নগর স্বাস্থ্যকেন্দ্রের উদ্বোধন করেন। তিনি বলেন, “গত দশ বছরে জনগণের জীবনমানের উন্নয়ন হয়েছে এবং দিনবদলের যাত্রা শুরু হয়েছে।” নীলফামারীর ডোমার, নওগাঁর আত্রাই ও রাণীনগর, নাটোরের সিংড়া, সিরাজগঞ্জের তাড়াশ, কিশোরগঞ্জের সদর উপজেলা, মানিকগঞ্জের সাটুরিয়া, যশোরের শার্শা এবং নোয়াখালীর সদর উপজেলায় ‘উপজেলা পরিষদের সম্প্রসারিত প্রশাসনিক ভবন ও হলরুম’ এর উদ্বোধন করেন শেখ হাসিনা। প্রধানমন্ত্রী এসব প্রকল্পের উদ্বোধন করে এগুলোর রক্ষণাবেক্ষণে সংশ্লিষ্ট কর্তৃপক্ষকে যতœবান হতে বলেন। ভিডিও কনফারেন্সের মাধ্যমে মাদারীপুর, কুমিল্লা, নওগাঁ, ময়মনসিংহ এবং গাজীপুরে সরকারি বিভিন্ন কর্মসূচির উপকারভোগীদের সঙ্গেও কথা বলেন তিনি।

শচীন হচ্ছে প্রকৃত ক্লাস ব্যাটসম্যান – শেন ওয়ার্ন

ক্রীড়া প্রতিবেদক ॥ অস্ট্রেলিয়ার কিংবদন্তি স্পিনার শেন ওয়ার্ন বলেছেন, ‘আমাদের প্রজন্মের সেরা দুই ব্যাটসম্যান হলেন- শচীন টেন্ডুলকার ও ব্রায়ান লারা। যদি কোনো টেস্ট সিরিজের শেষ দিনে সেঞ্চুরি করার জন্য কাউকে বেছে নিতে হয়, তবে আমি লারাকেই বেছে নেব। আর যদি নিজের ক্যারিয়ারের জন্য কাউকে ব্যাটিং করতে পাঠাতে হয়, সে ক্ষেত্রে আমি শচীনের হাতেই সে দায়িত্ব তুলে দিয়ে নিশ্চিন্ত থাকতে পারব। ও হচ্ছে একজন প্রকৃত ক্লাস ব্যাটসম্যান।’ ক্রিকেট ইতিহাসের অন্যতম সেরা বোলার হিসেবে স্বীকৃত শেন ওয়ার্ন। অস্ট্রেলিয়ার হয়ে ১৪৫ টেস্টে ৭০৮ উইকেট শিকার করে দ্বিতীয় অবস্থানে আছেন এ কিংবদন্তি। সাদা পোশাকে ১৩৩ ম্যাচে ৮০০ উইকেট নিয়ে শীর্ষে রয়েছেন শ্রীলংকান কিংবদন্তি স্পিনার মুত্তিয়া মুরালিধরন। দেশে ও দেশের বাইরে বলে কয়ে উইকেট শিকার করা শেন ওয়ার্ন ভারতের মাঠে সেভাবে সাফল্য পাননি। নিজের আত্মজীবনী ‘নো স্পিন’ বইয়ের প্রচারণায় ভারত সফরে আছেন এ কিংবদন্তি। তিনি জানিয়েছেন, ‘ভারত সফরে আমার রেকর্ড মোটেই উজ্জ্বল নয়। তবে এ নিয়ে আমার কোনো আক্ষেপ নেই। কারণ দুবার আমাকে চোটের ধাক্কা সামলে উঠেই ভারতের বিরুদ্ধে খেলতে হয়েছে। তা ছাড়া শচীন, দ্রাবিড়, সৌরভ, লক্ষ্মণ ও শেওয়াগের মতো ব্যাটসম্যানের সমন্বয়ে গঠিত ছিল ওদের সেই সময়ের ব্যাটিং লাইনআপ। ওরা প্রত্যেকেই ছিল দারুণ ব্যাটসম্যান।’

 

মেসি থাকুক বা না থাকুক, আর্জেন্টিনাকে হারাতে চান কৌতিনিয়ো

ক্রীড়া প্রতিবেদক ॥ লিওনেল মেসির অনুপস্থিতিতে ব্রাজিল-আর্জেন্টিনা ম্যাচের উত্তাপ এতটুকু কমবে না বলে বিশ্বাস ফিলিপে কৌতিনিয়োর। তাই প্রতিপক্ষ শিবিরে ক্লাব সতীর্থের অনুপস্থিতির কথা না ভেবে দলকে জেতানো নিয়ে ভাবছেন ব্রাজিলিয়ান এই মিডফিল্ডার। আর্জেন্টিনার বিপক্ষে আগামী মঙ্গলবার মাঠে নামবে ব্রাজিল। রাশিয়া বিশ্বকাপের পর জাতীয় দলের হয়ে আর  মাঠে নামেননি ৩১ বছর বয়সী এই ফরোয়ার্ড। খেলবেন না এ ম্যাচেও।একই ক্লাবে খেলা সত্ত্বেও মেসির সঙ্গে আন্তর্জাতিক ফুটবল নিয়ে আলোচনা হয় না বলে জানিয়েছেন কৌতিনিয়ো। তিনি বলেন, সে না খেলা সত্ত্বেও ম্যাচটি অনেক বড় হবে। আন্তর্জাতিক ফুটবলে এটা অন্যতম সেরা প্রতিদ্বন্দ্বিতা। মেসি খেলুক বা নাই খেলুক আমি আর্জেন্টিনাকে হারাতে চাই। ভালো খেলা আর ম্যাচটা জেতাই আমার কাছে সবচেয়ে গুরুত্বপূর্ণ।

কোচিংয়ে ফিরতে চান লেহম্যান

ক্রীড়া প্রতিবেদক ॥ দক্ষিণ আফ্রিকায় বল টেম্পারিং কেলেঙ্কারীর পর দৃশ্যপট থেকে হারিয়ে যাওয়া ড্যারেন লেহম্যান কোচিংয়ে ফেরার ইচ্ছে ব্যক্ত করেছেন। গত মার্চে দক্ষিণ আফ্রিকা সফরে বল টেম্পারিং কেলেঙ্কারীর দায়ে তৎকালীন অধিনায়ক স্টিভ স্মিথ, সহ অধিনায়ক ডেভিড ওয়ার্নার এবং ক্যামেরন ব্যানক্রফটকে বিভিন্ন মেয়াদে শাস্তি দেয় ক্রিকেট অস্ট্রেলিয়া এবং দলটির প্রধান কোচের পদ থেকে সরে দাঁড়ান লেহম্যান। ২০১৯ সালের এ্যাশেজ সিরিজ পর্যন্ত চুক্তি থাকা লেহম্যান বল টেম্পারিং কেলেঙ্কারীর সঙ্গে কোনভাবেই যুক্ত নয়- ক্রিকেট অস্ট্রেলিয়ার কাছ থেকে এমন ছাড়পত্র পাওয়া সত্বেও পদত্যাগ করেন তিনি। তার পরই জাস্টিন ল্যাঙ্গারকে কোচ নিয়োগ দেয় অস্ট্রেলিয়া। অস্ট্রেলিয়ান এসোসিয়েটেড প্রেসকে লেহম্যান বলেন, তিনি পুনরায় কোচিং পেশায় ফিরতে চান এবং দারুনভাবে উপভোগ করা এ পেশাকে টেনে নিয়ে যেতে চান। তবে সেটা আরো কিছু দিন পর। প্রায় পাঁচ বছর অস্ট্রেলিয়া জাতীয় দলের সঙ্গে যুক্ত থাকা লেহম্যান বলেন, ‘একদিন আমি আবারো কোচ হতে চাই। আমি মনে করি আমি একজন ভাল কোচ, আমার কোচিং রেকর্ড বেশ ভাল। কোন এক সময়ে আমি আবার কোচিংয়ে ফিরব।’ ‘কিছু দিন পরই সেটা হতে পারে.. সম্ভবত আমি সে অপেক্ষায় আছি। তবে এই গ্রীষ্মে দায়িত্ব নিচ্ছি না। এই গ্রীষ্মে কেবল ক্রিকেট দেখব ও উপভোগ করব। দেখি আগামী বছর কি হয়।’ গত কয়েকটি বছর বাইরে বাইরে কাটানোর পর অবসাদগ্রস্ত হয়ে পড়ার পর এখন বাড়িতে থেকেও বেশ খুশি সাবেক এ তারকা ব্যাটসম্যান। তিনি বলেন, ‘আমি আমার জীবন ফিরে পেয়েছি। কোচ থাকাকালীন বছরে তিনশ দিন বাইরে থাকতে হয়েছে। মুলত ম্যাচ জেতার জন্য সর্বপ্রকার ঝামেলামুক্ত অবস্থায় এখন বাড়িতে থেকে ক্রিকেট উপভোগ করাটা বেশ ভাল লাগছে। কোন অবসাদ নেই, সব কিছু থেকে দূরে আছি। এটা খুব ভাল লাগছে।’

ওয়ানডে দলে নতুন মুখ ফজলে রাব্বি, ফিরলেন সাইফ উদ্দিন

ক্রীড়া প্রতিবেদক ॥ অবশেষে ৩০ বছর বয়সে এসে বাংলাদেশের ওয়ানডে দলে ডাক পেলেন ফজলে মাহমুদ রাব্বি। ঘরোয়া ক্রিকেটের অভিজ্ঞ এই ব্যাটসম্যানের প্রথমবার সুযোগ পাওয়ার দিনে দলে জায়গা ফিরে পেয়েছেন অলরাউন্ডার মোহাম্মদ সাইফ উদ্দিন। গুরুত্বপূর্ণ দুই ক্রিকেটারের আগেই ছিটকে যাওয়া, আরও অনেকের টুকটাক চোট মিলিয়ে জিম্বাবুয়ের বিপক্ষে বাংলাদেশের ওয়ানডে স্কোয়াডের সম্ভাব্য চেহারা নিয়ে জল্পনা ছিল অনেক। তবে শেষ পর্যন্ত খুব বেশি পরিবর্তনের পথে বেছে নেননি নির্বাচকেরা। সাকিব আল হাসান ও তামিম ইকবালের না থাকা নিশ্চিতই ছিল। বাকি তিন সিনিয়র ক্রিকেটার আছেন দলে। মাশরাফি বিন মুর্তজার আঙুল ও উরুতে চোট থাকলেও খেলবেন সিরিজের শুরু থেকেই। পাঁজরের চোট কাটানোর লড়াইয়ে থাকা মুশফিকুর রহিমকেও শুরু থেকে পাওয়া যাবে বলে আছে আশা। তামিম ও সাকিব ফিরেছিলেন এশিয়া কাপের মাঝপথেই। এই দুজনকে বাদ দিলে, এশিয়া কাপের স্কোয়াড থেকে জায়গা হারিয়েছেন মুমিনুল হক ও সৌম্য সরকার। নতুন মুখ হলেও গত কিছুদিনের পারফরম্যান্স বিবেচনায় নিলে ফজলে রাব্বির ডাক পাওয়াকে সেই অর্থে চমক বলা যায় না। গত ঢাকা প্রিমিয়ার লিগে সাতশর বেশি রান করা চার ব্যাটসম্যানের একজন এই বাঁহাতি ব্যাটসম্যান। প্রাইম দোলেশ্বরের হয়ে ১৬ ম্যাচে দুই সেঞ্চুরি ও ৩ ফিফটিতে ৭০৮ রান করেছিলেন ৪৭.২০ গড়ে। সেই পারফরম্যান্স তাকে জায়গা করে দিয়েছিল বাংলাদেশ ‘এ’ দলে। শ্রীলঙ্কা ‘এ’ দলের বিপক্ষে আনঅফিসিয়াল ওয়ানডে সিরিজে একটি মাত্র ইনিংসে ব্যাটিংয়ের সুযোগ পেয়ে করেছিলেন ৫৯ রান। এরপর আয়ারল্যান্ড সফরে আনঅফিসিয়াল ওয়ানডে সিরিজে তিনটি ম্যাচে ব্যাটিংয়ের সুযোগ পেয়ে দুই ইনিংসে খেলেছিলেন ৪১ বলে ৫৩ ও ৬৩ বলে ৭৪ রানের ইনিংস। এবার জাতীয় লিগের প্রথম রাউন্ডে বরিশালের হয়ে খেলেছেন ১৯৫ রানের ইনিংস। ছিলেন এশিয়া কাপের প্রাথমিক দলেও। তার পক্ষে গেছে অনেক পজিশনে ব্যাট করতে পারার সামর্থ্যও। ওপেনিং কিংবা তিন নম্বর, মিডল অর্ডারে চার-পাঁচ-ছয়, সব পজিশনে ব্যাট করার অভিজ্ঞতা আছে তার। পাশাপাশি বিবেচনায় ছিল তার বোলিংও। ঠিক অলরাউন্ডার ক্যাটেগরিতে রাখা না গেলেও তার বাঁহাতি স্পিন বরাবরই বেশ কার্যকর। সাইফ উদ্দিন সবশেষ ওয়ানডে খেলেছেন গত জানুয়ারিতে ঢাকায় ত্রিদেশীয় সিরিজের ফাইনালে। ৩ ওয়ানডে খেলে ৩০ রান ও ১ উইকেট নেওয়ার পর জায়গা হারিয়েছিলেন। একজন পেস বোলিং অল রাউন্ডার পাওয়ার তাড়নায়ই মূলত তার দিকে আবার হাত বাড়ানো। এখনও অভিষেক না হওয়া অলরাউন্ডার আরিফুল হক আছেন দলে। তবে বাংলাদেশের টিম ম্যানেজমেন্টের চাওয়া মূলত বোলিং প্রধান পেস অলরাউন্ডার। আরিফুলকে দল দেখছে ব্যাটিং প্রধান অলরাউন্ডার হিসেবে। সাইফ উদ্দিনের বোলিংই মূল শক্তি। বাংলাদেশ ‘এ’ দলের হয়ে আয়াররল্যান্ড সফরে চারটি আনঅফিসিয়াল ওয়ানডেতে বোলিং করে নিয়েছিলেন ৬ উইকেট, তিনটি টি-টোয়েন্টিতে বোলিংয়ে নিয়েছিলেন ৯ উইকেট। ২১ অক্টোবর মিরপুরের ম্যাচ দিয়ে শুরু তিন ম্যাচের ওয়ানডে সিরিজ। পরের দুই ম্যাচ ২৪ ও ২৬ অক্টোবর চট্টগ্রামে। বাংলাদেশ দল: মাশরাফি বিন মুর্তজা (অধিনায়ক), মোহাম্মদ মিঠুন, লিটন কুমার দাস, মুশফিকুর রহিম, আরিফুল হক, মাহমুদউল্লাহ, মোসাদ্দেক হোসেন, নাজমুল হোসেন শান্ত, মেহেদী হাসান মিরাজ, নাজমুল ইসলাম অপু, রুবেল হোসেন, মুস্তাফিজুর রহমান, আবু হায়দার, ফজলে রাব্বি, মোহাম্মদ সাইফ উদ্দিন।

ভক্তদের সামনে দীপিকাকে রণবীরের চুমু

বিনোদন বাজার ॥ দীপিকা ও রণবীরের বিয়ে নিয়ে এখনো ধুয়াশা রয়ে গেছে। আগামী নভেম্বরে তারা গাঁটছড়া বাঁধছেন, এমন খবর ভারতীয় মিডিয়ায় প্রকাশ হলেও এখনো কিছু বলেননি বলিউড এই দুই তারকা। তবে রণবীর ও দীপিকাকে প্রায় এক সঙ্গে দেখা যাচ্ছে। সম্প্রতি দিল্লিতে একটি সামিট সেরে মুম্বাই ফিরেছেন এই জুটি। হাত ধরে বিমানবন্দর থেকে বেরনোর সময় পাপারাৎজিদের কবলে পড়েন। এরপর দীপিকাকে গাদিতে বসিয়ে দেন রণবীর। গাড়ি ছাড়ার আগে প্রকাশ্যেই একে অপরকে চুম্বন করেন এই জুটি। দীপিকা চলে যাওয়ার পর বিমানবন্দর ছাড়েন রণবীর। তাদের এই ভিডিও ছড়িয়ে পড়ে সোশ্যাল মিডিয়ায়। এদিকে বিয়ের আলোচনায় যে আদৌ খুশি নন, তা বুঝিয়ে দিয়েছেন রণবীর। এই নায়ক বলেন, আরে আমার বিয়ে সংক্রান্ত সব খবরই তো মিডিয়ার কাছে আছে। আমি তো মিডিয়া থেকেই জানতে পারি যে, আমার বিয়ে কবে। এমনকি একটা ট্যাবলয়েডে তো কোন রঙের শেরওয়ানি পরে বিয়ে করব, সেটাও লিখেছে।

আমার জীবন আমাকে চমকে দিয়েছে : সোনালী

বিনোদন বাজার ॥ নিজেকে কিভাবে ভালো ও সতেজ রাখা যায় সেটা নিয়েই ব্যস্ত বলিউড অভিনেত্রী সোনালী বেন্দ্রে। বর্তমানে ক্যান্সারে আক্রান্ত সোনালীর চিকিৎসা চলছে যুক্তরাষ্ট্রে। সেখানে এরইমধ্যে বেশ কয়েকটি কেমোথেরাপি দেওয়া হয়েছে তাকে। ফলে তার শারীরিক অবস্থা কিছুটা উন্নতির দিকে। তবে এই অসুস্থ শরীর নিয়ে এখনো বসে নেই এই অভিনেত্রী, খোঁজ নিচ্ছেন বাকিদেরও। বলিউডের বর্ষীয়ান অভিনেতা ঋষি কাপুরও অসুস্থ। তিনি চিকিৎসার জন্য যুক্তরাষ্ট্রে অবস্থান করছেন। সেখানে তার সাথে রয়েছেন স্ত্রী নীতু কাপুর ও ছেলে রণবীর কাপুর। তার এই অসুস্থতায় তাকে সঙ্গ দিতেই দেখতে গিয়েছিলেন বলিউডের জনপ্রিয় অভিনেত্রী প্রিয়াঙ্কা চোপড়া। তার সাথে ছিলেন ক্যান্সারে আক্রান্ত অভিনেত্রী সোনালী বেন্দ্রে। সোনালীর কথায়, ‘আমার মনোবল যত চাঙ্গা থাকবে, আমি ততো সুস্থ থাকবো।’ তবে ৪৩ বছর বয়সী এই অভিনেত্রীর ক্যান্সার খুবই গুরুতর পর্যায়ে এবং এই পর্যায়ে থেকে খুব কম মানুষ ফিরে আসেÑ এমনটাই বলছেন সোনালী। তবে তিনি ক্যান্সারের বিরুদ্ধে লড়াই চালিয়ে যাওয়ার সিদ্ধান্ত নিয়েছেন এবং এ যুদ্ধে তার পাশে থেকে তাকে সমর্থন দেওয়ার জন্য পরিবার ও বন্ধুদের ধন্যবাদ জানিয়েছেন। সোনালী বলেন, ‘আমার জীবন আমাকে চমকে দিয়েছে। আমি কখনো ভাবিনি জীবনের এই স্টেজে আমি উঠবো। আমি উচ্চ পর্যায়ের ক্যান্সারের চিকিৎসা নিচ্ছি। যেখান থেকে সত্যি বলতে কেউ ফেরে না। আমার পরিবার ও ঘনিষ্ঠ বন্ধুরা আমাকে ঘিরে রেখেছে। তারা আমাকে সর্বোচ্চ সমর্থন দিচ্ছে। আমিও তাদের সমর্থন দিচ্ছি, যারা বিভিন্ন রোগে আক্রান্ত।’ আমির খানের সঙ্গে ‘সারফারোশ’, অমিতাভ বচ্চনের সঙ্গে ‘মেজর সাব’, শাহরুখ খানের সঙ্গে ‘কাল হো না হো’র মতো ব্যবসাসফল ছবিতে অভিনয় করেছেন সোনালী। সর্বশেষ ২০১৩ সালে সোনালি অভিনীত ‘ওয়ান্স আপন এ টাইম ইন মুম্বাই দোবারা’ ছবিটি মুক্তি পায়।

 

১০ সম্পর্ক ভেঙেছেন সুস্মিতা

বিনোদন বাজার ॥ বলিউড অভিনেত্রী সুস্মিতা সেন নাকি এ পর্যন্ত ১০টি সম্পর্ক ভেঙেছেন। আর খোলামেলা সেই সম্পর্কের জন্যই বার বার খবরের শিরোনামে উঠে এসেছেন তিনি। এবার কি ১১ নম্বর সম্পর্কে জড়ালেন সুস্মিতা সেন? সম্প্রতি মুম্বাই বিমানবন্দরে অজ্ঞাত পরিচয়ের এক যুবকের সঙ্গে দেখা যায় তাকে। সুস্মিতার সঙ্গে অজ্ঞাত পরিচয়ের ওই ব্যক্তিকে দেখে তাদের ঘিরে ধরেন পাপারাৎজিরা। কিন্তু এ বিষয়ে কোনও মন্তব্য করেননি অভিনেত্রী। ক্যামেরার সামনে হাসিমুখে পোজ দিয়েই সেখান থেকে সরে যান তিনি। যা দেখে জল্পনা আরও বেড়ে যায়। এর আগে মুম্বাইয়ের একাধিক নাইটক্লাবের মালিক হৃত্বিক ভাসিনের সঙ্গে সম্পর্কে জড়ান সুস্মিতা। কিন্তু দু’বছর পর হৃত্বিকের সঙ্গে ব্রেকআপ হয়ে যায় তার।শোনা যায়, ‘দস্তক’-এর শুটিংয়ের সময় সুস্মিতা সেনের সঙ্গে সম্পর্কে জড়ান বিক্রম ভাট। বাঙালি কন্যার জন্য ওই সময় বিক্রমের বিয়েও ভেঙে যায়। তেমনি বয়সে ছোট অভিনেতা রণদীপ হুডার সঙ্গেও এক সময় লিভ ইন করেছেন সুস্মিতা। শোনা যায়, একটি রিয়েলিটি শো-এ একই সঙ্গে বিচারকের আসনে বসার পর সুস্মিতার প্রেমে পড়েন পাকিস্তান ক্রিকেটার ওয়াসিম আক্রাম। এভাবে মুদাসসার আজিজ, ইমতিয়াজ খাতরি, মানব মেনন, সঞ্জয় নারাং, সাবির, বান্টি সচদেব এদের সঙ্গেও সম্পর্কে জড়ান অভিনেত্রী। তবে এসব সম্পর্ক টেকেনি।  এবার গুঞ্জন উঠেছে ১১ নম্বর সম্পর্কে কি জড়ালেন সুস্মিতা সেন?  এখনো এ বিষয়ে কিছু জানা যায়নি।

থাইল্যান্ডে শাকিব-বুবলির রোমান্স

বিনোদন বাজার ॥ ‘মন তোকে ছাড়া’ গানটি নিয়ে জুটিবদ্ধ হয়ে পর্দায় হাজির হতে যাচ্ছেন শাকিব-বুবলি। গানটি দেখা যাবে শাকিব খান ও শবনম বুবলির রোমান্স। রোববার রাতে ললিপপ ইউটিউব চ্যানেলে প্রকাশিত হয়েছে গানটি। রোমান্টিক ঘরানার এই গানের কথার মাধ্যমে বুবলিকে শাকিবের প্রেমের আকুতি জানাতে দেখা যায়। আর পুরো গানজুড়েই নিষ্পাপ চেহারার বুবলির উপস্থিতি। গানিটিতে দেখা যাচ্ছে, চোখে কালো চশমা। পরনে কালো রঙের পোশাক। কয়েক কদম হেঁটে এসে লাল রঙের গাড়ির সঙ্গে হেলান দিয়ে দাঁড়িয়ে শাকিব। পরের দৃশ্যে- কমলা আর অফ হোয়াইট রঙের পোশাকে হেঁটে আসতে দেখা যায় বুবলিকে। এ সময় ব্যাকগ্রাউন্টে বেজে উঠে ‘মন তোকে ছাড়া’ শিরোনামের গানটি। ‘মন তোকে ছাড়া’ গানটি লিখেছেন- রবিউল ইসলাম জীবন। গানের সুর ও কণ্ঠ দিয়েছেন আকাশ। কিছুদিন আগে থাইল্যান্ডের বিভিন্ন মনোরম লোকেশনে গানটির দৃশ্যধারণের কাজ সম্পন্ন হয়েছে। শাকিব-বুবলি ছাড়াও এতে আরো অভিনয় করেছেন রজতাভ দত্ত, অমিত হাসান, সাদেক বাচ্চু, মিজু আহমেদ প্রমুখ।

অভিনেতা দিলীপ কুমারের শারীরিক অবস্থার উন্নতি

বিনোদন বাজার ॥ ভারতের কিংবদন্তি অভিনেতা দিলীপ কুমারের শারীরিক অবস্থার উন্নতির দিকে। এর আগে গুরুতর অসুস্থ হয়ে গত সোমবার (৮ অক্টোবর) মুম্বাইয়ের লীলাবতী হাসপাতালে ভর্তি হয়েছেন। তিনি দীর্ঘদিন ধরে নিউমোনিয়া আক্রান্ত। বর্তমানে তিনি চিকিৎসাধীন রয়েছেন।গত বুধবার (১০ অক্টোবর) তার শারীরিক অবস্থার উন্নতি হওয়ার খবর জানা গেছে। ৯৫ বছর বয়সী এই অভিনেতার পারিবারিক ঘনিষ্ঠ বন্ধু ফয়সাল ফারুকী বিষয়টি জানান।ফয়সাল সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে লেখেন, দিলীপ কুমারের শারীরিক অবস্থা উন্নতির দিকে। তিনি এখন আগের চেয়ে ভালো আছেন। সবকিছু ঠিক থাকলে বৃহস্পতিবার (১১ অক্টোবর) তাকে হাসপাতাল থেকে বসায় নেওয়া হবে।

১৬৪৪ সালে ‘জোয়ার ভাটা’ সিনেমার মধ্য দিয়ে দিলীপ কুমারের বলিউডে অভিষেক ঘটে। পাঁচ দশকের বেশি সময় ধরে তিনি ৫০ টিরও বেশি সিনেমায় অভিনয় করেছেন। উপহার দিয়েছেন ‘দেবদাস’, ‘নয়া দৌড়’ ও ‘মুঘল-ই-আজম’র মতো কালজয়ী সিনেমা। প্রসঙ্গত, ১৯৯৮ সালে ‘কিলা’ সিনেমার মধ্য দিয়ে শেষবার দিলীপ কুমার পর্দায় আসেন। কাজের স্বীকৃতিস্বরূপ তিনি ১৯৯৪ সালে দাদাসাহেব ফালকে পুরস্কার, ২০১৫ সালে পদ্ম ভূষণ পুরস্কার পেয়েছেন।

এবার ওয়েব সিরিজে তিশা

বিনোদন বাজার ॥ দীর্ঘদিন পর অভিনয়ে ফিরছেন ছোট ও বড় পর্দার জনপ্রিয় অভিনেত্রী নুসরাত ইমরোজ তিশা। ‘ইন্দুবালা’ নামে বিগ বাজেটের ওয়েব সিরিজে অভিনয় করতে যাচ্ছেন তিনি।অনন্য মামুন পরিচালিত এই ওয়েব সিরিজে ইন্দুবালা চরিত্রে অভিনয় করবেন তিশা। এখানে তিশার সঙ্গে অভিনয় করতে যাচ্ছেন চিত্রনায়িকা আঁচলও। এর আগে ‘মেন্টাল’ ছবিতে শাকিব খানের বিপরীতে একসঙ্গে দেখা গিয়েছিল এই দুই তারকাকে।অনন্য মামুন জানান, ১০ পর্বে নির্মিত হবে ইন্দুবালা। আগামী ১৪ অক্টোবর থেকে কলকাতায় শুটিং শুরু হবে।তিনি বলেন, ‘শিল্পীদের সঙ্গে সবকিছুই চূড়ান্ত হয়েছে। আমরা শুটিংয়ের অপেক্ষায়। আশা করছি একটি বড় ধামাকা নিয়ে হাজির হতে পারব।’ এতে আরও অভিনয় করছেন চিত্রনায়ক এবিএম সুমন, তারিক আনাম খান ও শহীদুজ্জামান সেলিম।

এবার মুখ খুললেন ঐশ্বরিয়া

বিনোদন বাজার ॥ বলিউডে এখন আলোচিত বিষয় ‘যৌন হয়রানি’। একে একে অভিযোগ করেছেন একাধিক অভিনেত্রী। তারা যৌন হয়রানির শিকার হয়েছিলেন বলে জানিয়েছেন। সম্প্রতি বিষয়টি নিয়ে এখন নড়েচড়ে বসেছেন অনেকেই। এবার এই বিষয়ে কথা বললেন ঐশ্বরিয়া রায় বচ্চন। তিনি বলেন, নারীরা যেভাবে যৌন হেনস্থার বিরুদ্ধে মুখ খুলছেন, তাদের ধন্যবাদ। আপনি বিশ্বের যে কোনও প্রান্তেই থাকুন না কেন, যৌন হেনস্থার বিরুদ্ধে আপনার অভিযোগ সংবাদমাধ্যম এখন গুরুত্ব দিয়ে শুনতে শুরু করেছে এবং সবার সামনে তা প্রকাশিত হচ্ছে। এটা অত্যন্ত ভালো পদক্ষেপ। ঐশ্বরিয়া আরও বলেন, নারীদেরকে কর্মক্ষেত্রে এই হেনস্থার শিকার হতে হয়। অনেক দিন ধরে এসব চলে আসছে। কিন্তু, নারীরা যে এবার যৌন হেনস্থার বিরুদ্ধে মুখ খুলতে শুরু করেছেন, তা দেখে ভালো লাগছে।এদিকে সম্প্রতি সালমান খানের একটি ভিডিও ভাইরাল হয়। যেখানে ঐশ্বরিয়া সঙ্গে সালমানের বিচ্ছেদ নিয়ে জানতে চাওয়া হয়। ঐশ্বরিয়াকে মারধর করেছেন কিনা জানতে চাইলে সালমান বলেন, তিনি যদি ঐশ্বরিয়ার গায়ে হাত তুলতেন, তাহলে তার সাবেক বান্ধবী শারীরিকভাবে সুস্থ থাকতে পারতেন না। উল্লেখ্য, বেশ কয়েক বছর আগে ঐশ্বরিয়া অভিযোগ করেছিলেন প্রেম চলাকালীন ঐশ্বরিয়াকে মারধর করেছেন সালমান। বিষয়টি নিয়ে সালমানের এমন মন্তব্য এখন ভাইরাল সোশ্যাল মিডিয়ায়।

ধান উতপাদনে আসছে বৈপ্লবিক পরিবর্তন

কৃষি প্রতিবেদক ॥ বোরো মৌসুমে চাষের উপযোগী ধানের নতুন দুটি জাত উদ্ভাবন করেছে বাংলাদেশ ধান গবেষণা ইনস্টিটিউট (ব্রি)। বিজ্ঞানীরা নতুন এই দুটি জাতের নাম দিয়েছেন ব্রি ধান-৮৮ ও ব্রি ধান-৮৯। ব্রি ধান-৮৮ নামে নতুন জাতটির ফলন একই মৌসুমের সবচেয়ে জনপ্রিয় ব্রি ধান-২৮’র চেয়ে হেক্টরে আধা টন বেশি। আর ব্রি ধান-৮৯ নামে জাতটির ফলন হবে ব্রি-২৯’র চেয়ে প্রতি হেক্টরে এক টন বেশি। শুধু তাই নয়, উপযুক্ত পরিচর্চা পেলে এই জাতটির ফলন হতে পারে ৯ টনের চেয়েও বেশি। সারাদেশে ব্রি উদ্ভাবিত নতুন দুটি জাত ছড়িয়ে পড়লে ধান উৎপাদনে বৈপ্লবিক পরিবর্তন আসবে বলে মনে করছেন বিজ্ঞানীরা। কৃষি সচিব মোঃ নাসিরুজ্জামানের সভাপতিত্বে গত মঙ্গলবার জাতীয় বীজ বোর্ডের সভায় নতুন এই জাত দুটি অনুমোদন পায়। সভায় বাংলাদেশ ধান গবেষণা ইনস্টিটিউটের (ব্রি) মহাপরিচালক ড. শাহজাহান কবীর এবং বীজ বোর্ড ও কৃষি মন্ত্রণালয়ের উর্ধতন কর্মকর্তারা উপস্থিত ছিলেন। ড. শাহজাহান কবীর বলেন, বীজ বোর্ডের সভায় চূড়ান্তভাবে ব্রি ধান-৮৮ ও ব্রি ধান-৮৯ নামে নতুন দুটি জাত অনুমোদন পেয়েছে। এর মধ্যে ব্রি-৮৯ এর ফলন হবে প্রচলিত ব্রি-২৯ এর চেয়ে প্রতি হেক্টরে এক টন বেশি। কোন কোন ক্ষেত্রে জাতটিতে সাড়ে ৮ টন পর্যন্ত ফল পাওয়া গেছে। আর ব্রি ধান-৮৮ এর ফলনও প্রচলিত ব্রি ধান ২৮ এর চেয়ে প্রতি হেক্টরে আধা টন বেশি হবে। উদ্ভাবিত নতুন দুটি জাত দেশের ধান উৎপাদনে বৈপ্লবিক পরিবর্তন আনবে বলে প্রত্যাশা করছেন ড. শাহজাহান কবীর। ব্রি’র উদ্ভিদ প্রজনন বিভাগের প্রধান ও মুখ্য বৈজ্ঞানিক কর্মকর্তা ড. তমাল লতা আদিত্য বলেন, ব্রি ধান-৮৮ টিস্যু কালচার পদ্ধতি উদ্ভাবিত। জাতটিতে রোগ বালাইয়ের প্রকোপ যেমন কম, তেমন ফলনও বেশি। ধান পাকার পরও এর গাছ হেলে পড়ে না, তাই হাওড় অঞ্চলেও জাতটি চাষ করা যাবে। কৃষিজমিতে চাষের ক্ষেত্রে সুবিধা হলো, ধান কাটতে রিপার মেশিন ব্যবহার করা যাবে। ফলে শ্রমিকের সঙ্কটের ভোগান্তি থেকে রেহাই পাবেন চাষিরা। আর ব্রি ধান-৮৯ বন্য প্রজাতির একটি ধানের সঙ্গে সঙ্করায়ণের মাধ্যমে উদ্ভাবন করা হয়েছে। এটি বোরো চাষের একক অঞ্চলে বেশ জনপ্রিয় হয়ে উঠতে পারে। বিজ্ঞানীরা জানিয়েছেন, ব্রি ধান-৮৮ বোরো মৌসুমের স্বল্পমেয়াদী একটি জাত, যা প্রচলিত ব্রি ধান-২৮’র পরিপূরক। এর জীবনকাল ব্রি-২৮’র মতোই। হালকা ঝড়-বৃষ্টিতে ঝরে পড়বে না। এর ফলন ব্রি-২৮’র চেয়ে আধা টন বেশি। ফলন হবে ৬ থেকে ৭ টন। সারাদেশে এর গড় ফলন হবে ৭ টন। ধান পাকার পর ব্রি-২৮’র বীজ পাতা হেলে গেলেও ব্রি-৮৮’র ক্ষেত্রে পাতা খাড়া থাকবে। ধান পাকার পরও গাছ সোজা থাকায় রিপার মেশিন ব্যবহার করা যাবে। যে কারণে ধারণা করা হচ্ছে, হাওড় অঞ্চলে এটি জনপ্রিয় হয়ে উঠবে। এই চালের ভাত হবে ঝরঝরে। বিশেষ করে যেসব অঞ্চলে ব্রি-২৮’র বেশি চাষ হয়, বিশেষ করে খুলনা ও সাতক্ষীরা অঞ্চলের চাষিরা এই জাত চাষ করে সুফল পাবেন। নতুন জাতে রোগ বালাইয়ের প্রকোপ কম। বিজ্ঞানীরা আরও জানান, বোরো মৌসুমের নতুন উদ্ভাবিত ব্রি ধান-৮৯ একই মৌসুমের ব্রি-২৯’র পরিপূরক। নতুন জাতটির ফলন হবে প্রচলিত ব্রি-২৯’র চেয়ে এক টন বেশি। গড়ে যার ফলন হবে ৮ টন। তবে উপযুক্ত পরিচর্চা পেলে জাতটি ৯.৭ টন পর্যন্ত ফলন দিতেও সক্ষম। আর জাতটির জীবনকাল ১৫৪ থেকে ১৫৮ দিন, যা ব্রি-২৯’র চেয়ে ৩ থেকে ৫ দিন কম। সারাদেশেই এটি চাষযোগ্য। এই চালের ভাত হবে ঝরঝরে এবং খেতে সুস্বাদু।

মাজবাড়ী জাহানারা বেগম কলেজ শিক্ষকদের সাথে জেলা পরিষদ চেয়ারম্যানের মতবিনিময়

কালুখালী প্রতিনিধি ॥ গতকাল বুধবার রাজবাড়ীর কালুখালী উপজেলার মাজবাড়ী জাহানারা বেগম ডিগ্রী কলেজের শিক্ষকদের সাথে জেলা পরিষদের চেয়ারম্যান বীর মুক্তিযোদ্ধা ফকির আব্দুল জব্বার এর মতবিনিময় ও উন্নয়ন বিষয়ে আলোচনা সভা অনুষ্ঠিত হয়েছে। সকাল ১০টায় কলেজের হলরুমে অনুষ্ঠিত সভায় কলেজ অধ্যক্ষ মোঃ আসাদুজ্জামান সাগরের সভাপতিত্বে প্রধান অতিথি হিসেবে বক্তব্য রাখেন রাজবাড়ী জেলা পরিষদের চেয়ারম্যান বীর মুক্তিযোদ্ধা ফকির আব্দুল জব্বার। তিনি তার বক্তব্যে বলেন স্বপ্ন দেখতে হবে তবে ঘুমিয়ে নয় চোখ ফুটিয়ে বাস্তবে পরিনত করতে হবে। এমন সব স্বপ্ন দেখবে যা তোমাকে সবসময় তারিত করে। তিনি ঘুষ দুর্নীতি সন্ত্রাসের বিরুদ্ধে প্রতিকার জানিয়ে সকলকে সোচ্চার হতে বলেন। সমাজ থেকে বাল্য বিবাহ ও যৌতুক প্রথা বন্ধ করতে সকলের প্রতি আহবান জানান। এবং বলেন যারা ঘুষ দুর্নিতির সাথে জড়িত তাদের সন্তানেরা সমাজে মাথা উচু করে চলতে পারে না। সর্বপরি তিনি ঘুষ দুর্নীতি ও মাদককে না বলে সকলকে সচেতন হতে বলেন। বিশেষ করে কলেজের ছাত্রছাত্রীদের উদ্দেশ্যে বলেন প্রত্যেকে নিজের কাজ নিজে করবে এবং পিতা-মাতাকে সর্বপরি সাহায্য সহযোগীতা করতে বলেন। এবং কলেজের অধ্যক্ষসহ অন্যান্য বক্তাদের চাওয়া পাওয়ার বিষয়ে অতিসত্তর কলেজ ছাত্রদের জন্য একটি খেলার প্যাকেজ এবং কলেজের উন্নয়নের জন্য জেলা পরিষদের থেকে সাহায্য সহযোগীতা করার কথা বলেন। এসময় সহকারী অধ্যাপক রেবেকা বেগমের সঞ্চালণায় অন্যান্যের মধ্যে কলেজ গভর্নিং বডির সভাপতি উপজেলা মাধ্যমিক শিক্ষা অফিসার কাজী এজাজ কায়সার, রাজবাড়ী সরকারী মহিলা কলেজের সহকারী অধ্যক্ষ গোলাম মোস্তফা রন্টু চৌধুরী, সহকারী অধ্যাপক ও যশাই ইউপি চেয়ারম্যান মোঃ সিদ্দিকুর রহমান, মাজবাড়ী ইউপি চেয়ারম্যান কাজী শরিফুল ইসলাম এছাড়াও বহরপুর কলেজের অধ্যক্ষ মোঃ ওহিদুজ্জামান হক, সহকারী অধ্যাপক এবিএম আলমগীর মিয়া, মাজবাড়ী সিদ্দিকীয়া আহম্মেদিয়া সেরাতুল হক আলিম মাদরাসার অধ্যক্ষ মাওঃ মোঃ নুরুল ইসলাম হেলাল ও প্রধান শিক্ষক আঃ জলিল প্রমূখ বক্তব্য রাখেন। আলোচনার পূর্বে কলেজের পক্ষ থেকে জেলা পরিষদের চেয়ারম্যান কে ক্রেস্ট ও সম্মাননা স্বারক প্রদান করা হয়।

 

মিরপুরে শারদীয় দূর্গাপূজা উদযাপন উপলক্ষ্যে আলোচনা সভা

আমলা অফিস ॥ কুষ্টিয়ার মিরপুরে শারদীয় দূর্গাপূজা উদযাপন উপলক্ষ্যে আলোচনা সভা অনুষ্ঠিত হয়েছে। গতকাল বুধবার সকালে উপজেলা প্রশাসনের উদ্যোগে উপজেলা নির্বাহী অফিসারের কার্যালয়ে এ আলোচনা সভা অনুষ্ঠিত হয়। আলোচনা সভায় মিরপুর উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা এসএম জামাল আহমেদ এর সভাপতিত্বে প্রধান অতিথির বক্তব্য রাখেন মিরপুর উপজেলা পরিষদের চেয়ারম্যান ও উপজেলা আওয়ামীলীগের সাধারন সম্পাদক কামারুল আরেফিন। এসময় আরো বক্তব্য রাখেন মিরপুর মহিলা কলেজের অধ্যক্ষ আনোয়ারুজ্জামান বিশ্বাস মজনু, মিরপুর পৌরসভার মেয়র হাজ্বী এনামূল হক, মিরপুর উপজেলা পরিষদের ভাইস চেয়ারম্যান বাহাদুর শেখ, মিরপুর থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) রফিকুল ইসলাম, উপজেলা জাসদের সভাপতি মহাম্মদ শরীফ, তালবাড়ীয়া ইউনিয়ন পরিষদের চেয়ারম্যান আব্দুল হান্নান, সদরপুর ইউনিয়ন পরিষদের চেয়ারম্যান রবিউল হক রবি, কুর্শা ইউনিয়ন পরিষদের চেয়ারম্যান ওমর আলী, মিরপুর উপজেলা পূজা উদযাপন কমিটির সভাপতি বিশ্বজিৎ বিশ্বাস, অগ্রণী ব্যাংক মিরপুর শাখার ব্যবস্থাপক শক্তি সঞ্চয় পাল, মিরপুর প্রেসক্লাবের সহ-সভাপতি কাঞ্চন কুমার, বহলবাড়ীয়া ইউনিয়ন পরিষদের চেয়ারম্যান সোহেল রানা, মিরপুর পল্লী বিদ্যুতের ডিজিএম এনামূল হক, উপজেলা কৃষি কর্মকর্তা রমেশ চন্দ্র ঘোষ, প্রাথমিক শিক্ষা অফিসার সিরাজুল ইসলাম, উপজেলা সমাজ সেবা কর্মকর্তা আবু রায়হান মিঠু, উপজেলা দারিদ্র বিমোচন কর্মকর্তা মনোজ কুমার ইন্দ্র, উপজেলা মৎস্য কর্মকর্তা রাজিউল হকসহ উপজেলার সকল দপ্তরের প্রধানগণ ও উপজেলার সকল পূজা মন্দিরের সভাপতি এবং সাধারন সম্পাদক এছাড়া উপজেলা পূজা উদযাপন পরিষদের নেতৃবৃন্দ উপস্থিত ছিলেন। সভায় শারদীয় দূর্গোপূজা উদযাপন উপলক্ষ্যে বিভিন্ন দিকনির্দেশনা প্রদান করা হয়।

২১ আগস্ট গ্রেনেড হামলা মামলার রায়ে

ওয়ার্কার্স পার্টির নেতা কমরেড বকুলের সন্তোষপ্রকাশ

গাংনী প্রতিনিধি ॥ ২১ আগস্টে গ্রেনেড হামলা মামলার রায়ে বাংলাদেশ ওয়ার্কার্স পার্টির পলিট ব্যুরোর সদস্য জননেতা কমরেড নুর আহমেদ বকুল সন্তোষ প্রকাশ করেছেন। তিনি সন্তোষ প্রকাশ করে জানান, বিএনপি যে একটি ষড়যন্ত্রকারীদল তা এ মামলার রায়ে প্রমাণিত হয়েছে। নুর আহমেদ বকুল আরো বলেন, ক্যান্টনমেন্টে বসে মেজর জিয়ার গঠিত এ বিএনপি জন্মলগ্ন থেকেই দেশের বিরুদ্ধে-মুক্তিযুদ্ধের বিরুদ্ধে ষড়যন্ত্র করে আসছে। বিএনপি-জামায়াত পাকিস্তানীদের এজেন্ডা পালনে এখনও ষড়যন্ত্র লিপ্ত রয়েছে। তাই বাংলার জনগণ বিএনপির-জামায়াতের ষড়যন্ত্রকে নস্যাৎ করতে তৎপর রয়েছে। উল্লেখ্য, ২১ আগস্ট গ্রেনেড হামলা মামলার রায় বুধবার রায় ঘোষণা করা হয়। ওই রায়ে সাবেক স্বরাষ্ট প্রতিমন্ত্রী লুৎফুজ্জামান বাবরসহ ১৯জনকে মৃত্যুদন্ডের রায় ঘোষণা করে আদালত। একই মামলার রায়ে বিএনপির (ভারপ্রাপ্ত) ভাইস চেয়ারম্যান তারেক রহমানসহ ১৭জন যাবজ্জীবন কারাদন্ডের নির্দেশ দেয়া হয়েছে।

দৌলতপুরে ৪কেজি গাঁজাসহ মাদক ব্যবসায়ী আটক

দৌলতপুর প্রতিনিধি ॥ কুষ্টিয়ার দৌলতপুরে ৪ কেজি গাঁজাসহ উজির (৪৫) নামে এক মাদক ব্যবসায়ীকে আটক করেছে পুলিশ। গতকাল বুধবার ভোর সাড়ে ৪টার দিকে উপজেলার প্রাগপুর ইউনিয়নের সীমান্ত সংলগ্ন পাকুড়িয়া গ্রামে অভিযান চালিয়ে গাঁজাসহ মাদক ব্যবসায়ী উজিরকে আটক করা হয়।  পুলিশ জানায়, মাদক ব্যবসার গোপন সংবাদ পেয়ে দৌলতপুর থানার এসআই খসরুর নেতৃত্বে সঙ্গীয় ফোর্স পাকুড়িয়া গ্রামে অভিযান চালিয়ে নিজ বাড়ি থেকে মাদক ব্যবসায়ী উজিরকে ৪ কেজি গাঁজাসহ আটক করে। আটক মাদক ব্যবসায়ীর বিরুদ্ধে মাদকের মামলা হলে তাকে আদালতের মাধ্যমে জেল হাজতে প্রেরণ করা হয় ।

আলমডাঙ্গায় জাতীয় স্যানিটেশন মাস উদযাপন উপলক্ষ্যে প্রস্তুতিমূলক সভা

আলমডাঙ্গা অফিস ॥ আলমডাঙ্গা উপজেলা স্যানিটেশন ও টাস্কফোর্স কমিটির উদ্যোগে জাতীয় স্যানিটেশন মাস উদযাপন উপলক্ষ্যে প্রস্তুতিমূলক সভা অনুষ্ঠিত হয়েছে। গতকাল বুধবার সকাল ১০টায় উপজেলা পরিষদ সভা কক্ষে উপজেলা নির্বাহী অফিসার রাহাত মান্নানের সভাপতিত্বে সভায় অন্যান্যদের মধ্যে উপস্থিত ছিলেন উপজেলা সহকারী কমিশনার (ভূমি) সিমা শারমীন, উপজেলা সমাজসেবা অফিসার আফাজ উদ্দিন, উপজেলা প্রকৌশলী রফিকুর রহমান, উপজেলা শিক্ষা অফিসার শামসুজ্জোহা, আলমডাঙ্গা সরকারী স্কুলের প্রধান রবিউল ইসলাম খান, আলমডাঙ্গা প্রেসক্লাবের সভাপতি খন্দকার শাহ্ আলম মন্টু, সাধারণ সম্পাদক খন্দকার হামিদুল ইসলাম আজম, মহিলা বিষয়ক কর্মকর্তা মাকছুরা জান্নাত, সহকারী মৎস্য অফিসার এজেডএম তৌহিদুর রহমান, বিআরডিবি কর্মকর্তা সায়লা শারমিন, ব্র্যাক কর্মকর্তা এম হাফিজ উদ্দিন, আলমডাঙ্গা কলেজীয়েট স্কুলের উপাধ্যক্ষ শামীম রেজাসহ বিভিন্ন এনজিওর প্রতিনিধিগণ উপস্থিত ছিলেন। আগামী ১৫ অক্টোম্বর জাতীয় স্যানিটেশন মাস উদযাপন ও বিশ্ব হাত ধোয়া দিবস উদযাপিত হবে।