মুম্বাইয়ের বাড়ি ছেড়ে কি চলে যাচ্ছেন সালমান?

বিনোদন বাজার ॥ বলিউড সুপারস্টার সালমান খান তার মুম্বাইয়ের গ্যালাক্সি অ্যাপার্টমেন্ট নাকি ছেড়ে যাচ্ছেন। তবে এখন প্রশ্ন হলো- কোথায় যাচ্ছেন তিনি।

সম্প্রতি সালমানের বাড়িছাড়ার কথা উঠে এসেছে আলোচনায়। যদিও সম্প্রতি সালমানের ওই বাসস্থানকে ঘিরে বিক্ষোভ করেছেন কিছু লোক। তাদের ইস্যু ছিল রিয়েলিটি শো বিগ বস।

সংবাদমাধ্যম জিনিউজের প্রতিবেদনে জানা যায়, সম্প্রতি গুঞ্জন উঠেছে মুম্বাইয়ের ওই অ্যাপার্টমেন্ট ছেড়ে দিচ্ছেন সালমান। তবে কোথায় যাচ্ছেন তিনি, এমন পশ্নও ওঠেছে সর্বত্র।

প্রতিবেদনে বলা হয়, শৈশবের স্মৃতিঘেরা ওই অ্যাপার্টমেন্ট ছেড়ে কোথাও যাচ্ছেন না সালমান। খান পরিবারের ঘনিষ্ঠ সূত্রের বরাত দিয়ে এ তথ্য জানানো হয়।

এই অ্যাপার্টমেন্টেই জন্ম সুপারস্টার সালমান খানের। শুধু তা-ই নয়, এখানেই শৈশব-কৈশোর কাটিয়েছেন তিনি। তাই স্বাভাবিকভাবেই এখান থেকে এখনই কোথাও যাওয়ার ইচ্ছে নেই তার। তবে এ ব্যাপারে ভাইজানের পক্ষ থেকে কোনো বক্তব্য পাওয়া যায়নি।

এদিকে ভারতে সম্প্রতি রিয়েলিটি শো ‘বিগ বস’-এর ১৩তম আসরের প্রচার বন্ধের দাবিতে বিক্ষোভ হচ্ছে। ওই অনুষ্ঠানে অশ্লীলতা ছড়ানো হচ্ছে, এ অভিযোগ থেকেই এমন দাবি তাদের। বিক্ষোভের সেই উত্তাপ ছড়িয়েছে সালমানের বাড়ি অবধি।

সিদ্দিক-মিমের সংসার ভেঙে যাচ্ছে

বিনোদন বাজার ॥ সম্প্রতি তারকাদের বিচ্ছেদের খবর শোনা যাচ্ছে অহরহ। এবার শোনা গেল অভিনেতা সিদ্দিকুর রহমান ও মারিয়া মিমের বিচ্ছেদের খবর।

দাম্পত্য কলহের জেরে ভেঙে যাচ্ছে তাদের সংসার। বিষয়টি নিশ্চিত করেছেন অভিনেত্রী মারিয়া মিম।

পরিবারের সম্মতি নিয়ে বিয়ে হয়েছিল তাদের। তবে এখন সংসার টিকছে না। তাদের একটি পুত্রসন্তানও রয়েছে।

২০১২ সালের ২৪ মে বাংলাদেশি বংশোদ্ভূত স্পেনের নাগরিক মারিয়া মিমকে বিয়ে করেন সিদ্দিক। ২০১৩ সালের ২৫ জুন তারা পুত্রসন্তানের বাবা-মা হন।

তবে এখন সিদ্দিক-মিমের মধ্যে দূরত্ব বেড়েছে। বাধ্য হয়ে তিন মাস ধরে স্বামীর কাছ থেকে আলাদা থাকছেন মিম।

মিম জানান, দাম্পত্য কলহের জেরে ভেঙে যাচ্ছে তাদের সংসার। অনেক কিছুই তারা মানিয়ে নিতে পারছেন না। মিম চান শোবিজে কাজ করতে। কিন্তু সিদ্দিকের এতে আপত্তি।

মিমের অভিযোগ, কিছু দিন আগেই একটি বিজ্ঞাপনে কাজ করার কথা থাকলেও বিজ্ঞাপনটির নির্মাতা রানা মাসুদকে সিদ্দিকই প্রভাবিত করেছেন তাকে বাদ দিয়ে অন্য কাউকে নেয়ার জন্য।

মিম বলেন, সিদ্দিক নিজেও একজন শোবিজের মানুষ। অভিনয় করে, মডেলিং করে। এতে আমার কোনো আপত্তি নেই। স্বামী হিসেবে ওর কাছে কোনো সহযোগিতা পাই না। সে জন্যই আমি সিদ্ধান্ত নিয়েছি বিচ্ছেদের।

বর্তমানে একমাত্র পুত্র আরশ হোসেন তার বাবা সিদ্দিকের সঙ্গেই থাকছে। ডিভোর্সের পর নিজেকে শোবিজে ব্যস্ত রাখতে চান মিম।

রণবীর ও আলিয়ার বিয়ে নিয়ে যা বললেন কারিনা

বিনোদন বাজার ॥ বলিউডের জনপ্রিয় দুই তারকা আলিয়া ভাট ও কারিনা কাপুর খান। ভারতের মুম্বাইয়ে চলছে ‘২১তম জিও এমএএমআই মুভি মেলা। যেখানে এ দুই তারকা এবং তাদের সঙ্গে করণ জোহর উভয়ের ‘কমন’ ব্যক্তি আর পারিবারিক বিষয় নিয়ে আলাপ করলেন।

পরিচালক ও প্রযোজক করণ জোহর ছোটখাটো করে উপস্থিত দর্শকদের সামনে একটা ‘কফি উইথ করণ’ অনুষ্ঠান করে ফেললেন। অবশ্য এই বেলা কফি ছিল কিনা।

কে সেই ‘কমন’ ব্যক্তি? তিনি রণবীর কাপুর। যিনি একই সঙ্গে কারিনা কাপুর খানের চাচাতো ভাই আর আলিয়া ভাটের প্রেমিক।

এই আলাপের সময় অভিনেত্রী কারিনা কাপুর বলেন, বলিউডের এ মুহূর্তের সবচেয়ে আলোচিত জুটি রণবীর কাপুর ও আলিয়া ভাট। তাদের বিয়ে হলে নাকি তিনিই সবচেয়ে বেশি খুশি হবেন।

দি ইন্ডিয়ান এক্সপ্রেস ডটকম এমনটিই জানিয়েছে। চুটিয়ে প্রেম করলেও রণবীর কাপুরের নাম মুখে নিতে গিয়ে আলিয়া ভাট লজ্জায় লাল হয়ে যান।

শেষমেশ করণ জোহর প্রশ্নটা করলেন একটু ঘুরিয়ে। বললেন, ‘কখনও ভেবেছিলে কারিনা তোমার ননদ হবে?’ শুনে দর্শক সারিতে বসা সবাই চিৎকার করে বলেছেন, এই প্রশ্ন শুধু করণ জোহরের নয়, এই প্রশ্ন তাদের সবার।

অন্যদিকে প্রশ্ন শুনে আলিয়া লজ্জায় আরও গাঢ় হয়। তবে নীরবতা ভেঙে কারিনা বললেন, ‘তা যদি হয় (আলিয়া আর রণবীরের বিয়ে), তবে আমি সবচেয়ে খুশি হব।’

এর পর আলিয়া ভাট ছোট্ট করে বললেন, সত্যি বলছি- আমি এখনও এসব ভাবছি না। সময়ই সব বলে দেবে।

‘দাদাগিরি’ ছাড়ছেন না সৌরভ

বিনোদন বাজার ॥ প্রায় এক দশক ধরে ভারতীয় টিভি চ্যানেল জি বাংলায় প্রচার হচ্ছে নন-ফিকশন শো ‘দাদাগিরি’। এটি সঞ্চালনা করেন দেশটির সাবেক অধিনায়ক সৌরভ গাঙ্গুলি। ক্রিকেটের থিমে তৈরি শো’টি পশ্চিমবঙ্গের পাশাপাশি বাংলাদেশেও তুমুল জনপ্রিয়। এর পুরো কৃতিত্ব দাদার।

তাজা খবর, ভারতীয় ক্রিকেট বোর্ডের (বিসিসিআই) সভাপতি হচ্ছেন সৌরভ। সোমবারই বিষয়টি নিশ্চিত হয়ে গেছে। আগামী ২৩ অক্টোবর বোর্ডের কার্যভার গ্রহণ করবেন তিনি। স্বভাবতই তাকে অনেক দায়িত্ব ছাড়তে হচ্ছে।

আইপিএল ফ্র্যাঞ্চাইজি দিল্লি ক্যাপিটালসের কোচের দায়িত্ব ছাড়ছেন সৌরভ। ধারাভাষ্য ও কলাম লেখা থেকে বিরতি নিচ্ছেন। ক্রিকেট অ্যাসোসিয়েশন অব বেঙ্গলের (সিএবি) সভাপতির পদেও ইস্তফা দিচ্ছেন।

স্বাভাবিক কারণেই প্রশ্ন ওঠে, ‘দাদাগিরি’তে তাকে আর দেখা যাবে তো? এরই মধ্যে উত্তরও মিলেছে। টেলিভিশন শো’টিতে নিয়মিতই দেখা যাবে বাংলার মহারাজকে।

বোর্ড প্রেসিডেন্ট হওয়ার পরই পশ্চিমবঙ্গের প্রথম সারির একটি পত্রিকায় সাক্ষাৎকার দেন সৌরভ। তাতে জানান, ‘দাদাগিরি’ ছাড়ছেন না তিনি। অনুষ্ঠানটি উপস্থাপনার কাজ চালিয়ে যাবেন।

দাদার প্রতি আরও প্রশ্ন ছুড়ে দেন সাংবাদিকরা-‘দাদাগিরির’র স্ক্রিপ্ট কে লেখেন? জবাবে সৌরভের বুদ্ধিদীপ্ত উত্তর, ঈশ্বর লেখেন। মূলত উপস্থাপনার পাশাপাশি নিজেই পুরো অনুষ্ঠানের স্ক্রিপ্ট লেখেন নয়া বোর্ড প্রেসিডেন্ট। অর্থাৎ সঞ্চালকের ভূমিকার পাশাপাশি স্ক্রিপ্ট রাইটারের কাজও করেন তিনি।

২০০৯ সালের ১২ অক্টোবর টেলিভিশনের পর্দায় ‘দাদাগিরি’র প্রচার শুরু হয়। সময়ের ব্যবধানে অনুষ্ঠানটি ব্যাপক দর্শকপ্রিয়তা পায়। দর্শকদের সরাসরি অংশগ্রহণে প্রতিটি পর্ব তৈরি হয়। এখন চলছে এর অষ্টম মৌসুম। শো’টি পরিচালনা করেন শুভঙ্কর চট্টোপাধ্যায়।

বিয়ে করছেন সাবিলা নূর

বিনোদন বাজার ॥ ছোটপর্দার অভিনেত্রী সাবিলা নূর। এ মাসেই বিয়ের পিঁড়িতে বসছেন তিনি। পাত্রের নাম নেহাল সুনন্দ তাহের। বর্তমানে এসএ টেলিভিশন চ্যানেলে কর্মরত আছেন তিনি। শোনা যায়, অনেক দিন থেকেই নেহালের সঙ্গে মন দেয়া-নেয়া ছিল তার। এবার সাবিলা ও নেহালের দুই পরিবারের সম্মতিতে তাদের চারহাত এক হতে যাচ্ছে। তাদের বিয়ের আয়োজন হবে রাজধানীর একটি ক্লাবে। ইতোমধ্যে সাবিলা নূরের বিয়ের আমন্ত্রণপত্র পাঠানো হচ্ছে অতিথিদের কাছে। সেখানেই সাবিলার বরের পরিচয় দেয়া পাত্র পরিবারের কনিষ্ঠ সন্তান নেহালের আদিবাড়ি চাঁদপুর। তার বাবা বাংলাদেশ বেতারের সাবেক উপ-মহাপরিচালক মরহুম আবু তাহের। মা উত্তরার মাইলস্টোন স্কুল এন্ড কলেজের কো-অর্ডিনেটরের দায়িত্ব পালন করছেন। দাওয়াতপত্রে বিয়ের তারিখ জানানো হয়েছে ২৫ অক্টোবর (শুক্রবার)।

বিবাহবার্তা নামে সাবিলার বিয়ের কার্ড কিছুটা ওয়েডিং ম্যাগাজিনের আদলে করা হয়েছে। সাবিলা নূর ২০১৪ সাল থেকে মডেলিংয়ের মাধ্যমে শোবিজ জগতে প্রবেশ করেন। গ্রামীণফোন, প্রাণ ফিট, রবি ছাড়াও প্রায় ৪০টির মতো জনপ্রিয় বিজ্ঞাপনে তিনি কাজ করেছেন।

এফডিসিতে অপমানিত মৌসুমী

বিনোদন বাজার ॥ বাংলাদেশ চলচ্চিত্র শিল্পী সমিতির এবারের নির্বাচন নিয়ে একের পর এক বিতর্ক সৃষ্টি হচ্ছে। সর্বশেষটি হচ্ছে, সোমবার সন্ধ্যায় স্বতন্ত্র সভাপতিপ্রার্থী মৌসুমীকে আরেক অভিনেতা ড্যানি রাজ কর্তৃক অপমান।

মৌসুমী গণমাধ্যমকে বলেন, ‘আমাকে শুভেচ্ছা জানাতে একজন আপা ফুল নিয়ে আসেন। তার সাথে আমার কয়েকজন ভক্ত ছিলো। তারা আমার সাথে সেলফি তুলছিলো। এরপর তারা চলে যাওয়ার কথা। ঠিক ওই সময় ড্যানিরাজ আমিসহ উপস্থিত সবার সাথে ঔদ্ধত্যপূর্ণ আচরণ করেন। ড্যানি আমাকে চিৎকার করে করে বলেন আমি কে? আসলে তারা চাইছে একটা ঝামেলা বাঁধাতে। যেন নির্বাচন বানচাল হয়ে যায়। আমি নির্বাচন থেকে সরে দাঁড়াই।’

মৌসুমীর অভিযোগ, এই সময় বর্তমান সভাপতি মিশা সওদাগর উপস্থিত থাকলেও তিনি কাউকে কিছু বলেননি।

প্রত্যক্ষদর্শীরা জানান, সন্ধ্যায় এফডিসিতে মহিলা লীগের কয়েকজন নেতা-কর্মীর সাথে মৌসুমীর ভক্তরাও আসেন। তারা মৌসুমির সাথে সেলফি তুলতে গেলে ড্যানি রাজ মৌসুমিসহ তার ভক্তদের সাথে খারাপ ব্যবহার করে। মৌসুমিকে উদ্দেশ্য করে চিৎকার করে বলতে থাকে, আপনি কে? বেশ কয়েকবার বলেন। এই সময় তিনি কেঁদে ফেলেন।

আরও অভিযোগ উঠেছে ঘটনার সময় ড্যানি রাজ মৌসুমীকে ধাক্কা দিয়েছেন। তবে মৌসুমীর অভিযোগ কিছুটা স্বীকার করে মিশা সওদাগর বলেন, ধাক্কার ঘটনা ঘটেনি। তবে ড্যানি মৌসুমীকে যেভাবে বলেছে ‘আপনি কে?’ এটা খুবই খারাপ হয়েছে। তার এভাবে বলা কোনভাবেই ঠিক হয়নি।

তবে পুরো ঘটনার জন্য ক্ষমা চেয়েছেন ড্যানি রাজ। বিষয়টি নিয়ে প্রধান নির্বাচন কমিশনার ইলিয়াস কাঞ্চন তাৎক্ষণিকভাবে প্রযোজক সমিতির সভাপতি খোরশেদ আলম খসরু, সাধারণ সম্পাদক শামসুল আলম, শিল্পী সমিতির সভাপতি মিশা সওদাগরকে নিয়ে আলোচনায় বসেন। সেখানে ড্যানি রাজ তার কৃতকর্মের জন্য ক্ষমা চান।

নেপালের ‘মুক্তির’ পরদিন অধিনায়ক খাড়কার পদত্যাগ

ক্রীড়া প্রতিবেদক ॥ শর্তসাপেক্ষে আইসিসির সদস্যপদ ফিরে পাওয়ার পরদিনই বড় এক ধাক্কা খেল নেপাল। অধিনায়কের পদ থেকে সরে দাঁড়িয়েছেন পরশ খাড়কা। সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যম টুইটারে মঙ্গলবার দায়িত্ব থেকে পদত্যাগের কথা জানান ৩১ বছর বয়সী এই অলরাউন্ডার। অবশ্য সিদ্ধান্তের পেছনে কোনো কারণের কথা জানাননি তিনি। এ বছরের জানুয়ারিতে সংযুক্ত আরব আমিরাতকে হারিয়ে নেপালের ইতিহাসে প্রথমবারের মতো ওয়ানডে সিরিজ জয়ে নেতৃত্ব দেন খাড়কা। সিরিজের শেষ ম্যাচে দেশের পক্ষে ওয়ানডে প্রথম সেঞ্চুরির দেখাও পান ডানহাতি এই ব্যাটসম্যান। গত সেপ্টেম্বরে সিঙ্গাপুরের বিপক্ষে ম্যাচে টি- টোয়েন্টিতেও তুলে নেন নেপালের হয়ে প্রথম সেঞ্চুরি। দেশের হয়ে ৬টি ওয়ানডে খেলে ৩৯.১৬ গড়ে ২৩৫ রান করার পাশাপাশি ৯টি উইকেটও নিয়েছেন খাড়কা। টি-টোয়েন্টিতে ২৭ ম্যাচে ৩০.৬৯ গড়ে ৭০৬ রান করার পাশাপাশি নিয়েছেন ৫টি উইকেট। বোর্ড পরিচালনায় সরকারের হস্তক্ষেপ না থাকার বিষয়টি নিশ্চিত করতে না পারায় ২০১৬ সালে নেপালকে বহিস্কার করেছিল আইসিসি। এই মাসের শুরুতে ক্রিকেট অ্যাসোসিয়েশন অফ নেপালের নির্বাচনের পরই আইসিসি সদস্যপদ ফিরে পাবার দ্বার উন্মুক্ত হয় নেপালের সামনে।

রোনালদোর ৭০০ ছোঁয়ার ম্যাচে পর্তুগালের হার, মূল পর্বে ইউক্রেন

ক্রীড়া প্রতিবেদক ॥ ম্যাচের শুরুতেই পর্তুগালের জালে বল। ধাক্কা কাটিয়ে উঠবে কি, ত্রিশ মিনিটের মধ্যে আবারও খেয়ে বসে গোল। ব্যবধান কমিয়ে কোণঠাসা দলকে পথে ফেরালেন ক্রিস্তিয়ানো রোনালদো। শেষ ২০ মিনিটে প্রতিপক্ষ শিবিরে এক জন কম থাকায় সুয়োগও ছিল বেশ। তবে উজ্জীবিত ইউক্রেনের বিপক্ষে শেষ পর্যন্ত পেরে ওঠেনি ইউরোপ চ্যাম্পিয়নরা। ঘরের মাঠে সোমবার রাতে পর্তুগালকে ২-১ গোলে হারিয়ে ইউরো চ্যাম্পিয়নশিপের মূল পর্ব নিশ্চিত হয়ে গেছে ইউক্রেনের। শুধু তাই নয়, দারুণ এই জয়ে ‘বি’ গ্র“পের শীর্ষস্থানও নিশ্চিত হয়ে গেছে আন্দ্রি শেভচেঙ্কোর শিষ্যদের। ইউক্রেনের উৎসবের রাতে ফিকে হয়ে গেছে রোনালদোর দারুণ অসাধারণ এক কীর্তি গড়ার আনন্দ। ব্যবধান কমানো গোলটি দিয়ে ক্লাব ও জাতীয় দলের হয়ে ৭০০ গোলের মাইলফলক স্পর্শ করেন পাঁচবারের বর্ষসেরা ফুটবলার। ম্যাচ শুরুর ৭০ সেকেন্ডের মাথায় প্রথম আক্রমণেই পর্তুগালের রক্ষণে ভীতি ছড়ায় ইউক্রেন। ডিফেন্ডারদের পেছনে ফেলে ডি-বক্সে ঢুকে পড়লেও শেষ পর্যন্ত গোলরক্ষক বরাবর দুর্বল শট নিয়ে বসেন রোমান ইয়ারেমচুক। চার মিনিট পর কাঙ্খিত গোল পেয়ে যায় স্বাগতিকরা। কর্নারে শেরি ক্রিস্টোভের হেড ঝাঁপিয়ে ঠেকিয়েছিলেন গোলরক্ষক রুই পাত্রিসিও; তবে বিপদমুক্ত করতে পারেননি। আলগা বল গোলমুখে পেয়ে জালে ঠেলে দেন ইয়ারেমচুক। শুরুতে গোল খাওয়ার ধাক্কা সামলে অল্প সময়ের মধ্যে বেশ কয়েকটি ভালো পাল্টা আক্রমণ করে পর্তুগিজরা। তবে প্রথম ছয় রাউন্ডে মাত্র একটি গোল হজম করা ইউক্রেনের জমাট রক্ষণ ভাঙতে পারেনি তারা। উল্টো ২৭তম মিনিটে দ্বিতীয় গোল খেয়ে বসে ইউরোপ চ্যাম্পিয়নরা। বাঁ দিক থেকে মাইলেঙ্কোর দারুণ ক্রস ডি-বক্সে পেয়ে প্রথম ছোঁয়ায় প্লেসিং শটে ঠিকানা খুঁজে নেন ওয়েস্ট হ্যাম ইউনাইটেডের ফরোয়ার্ড আন্দ্রি ইয়ারমোলেঙ্কো।

প্রথম ৩০ মিনিটে দুটি ফ্রি-কিকে দুর্বল শট নেওয়া রোনালদো ৪১তম মিনিটে আবারও সরাসরি লক্ষ্যে শট নেন। এ যাত্রায় বল ক্রসবার ঘেঁষে বাইরে চলে যায়। দ্বিতীয়ার্ধের ষষ্ঠ মিনিটে ডি-বক্সের বাইরে থেকে রোনালদোর জোরালো শট ঝাঁপিয়ে কর্নারের বিনিময়ে ঠেকান গোলরক্ষক। ৭২তম মিনিটে অবশেষে লড়াইয়ে ফেরা গোলের দেখা পায় পর্তুগাল। আর জোড়া ধাক্কা খায় ইউক্রেন। প্রতিপক্ষের একটি আক্রমণ ডি-বক্সে তারাস স্তেপানেঙ্কো স্লাইড করে ঠেকাতে গেলে বল তার হাতে লাগে। পেনাল্টির বাঁশি বাজান রেফারি, সঙ্গে এই মিডফিল্ডারকে দেখান দ্বিতীয় হলুদ কার্ড। বুলেট গতির স্পট কিকে ব্যবধান কমান রোনালদো। এই নিয়ে ইউরো বাছাইয়ে টানা চার ম্যাচে জালের দেখা পেলেন রোনালদো। এই সময়ে তার গোল হলো সাতটি, জাতীয় দলের হয়ে হলো ৯৫টি। যোগ করা সময়ে পরপর দুই মিনিটে দারুণ দুটি সুযোগ তৈরি করেছিল পর্তুগাল। কিন্তু রোনালদোর হেড গোলরক্ষক ঠেকানোর পর দানিলোর প্রচেষ্টা ক্রসবারে লেগে ফিরলে হারের হতাশায় মাঠ ছাড়তে হয় উয়েফা নেশন্স লিগের শিরোপাধারীদের। সাত ম্যাচে ছয় জয় ও এক ড্রয়ে শীর্ষস্থান নিশ্চিত করা ইউক্রেনের পয়েন্ট ১৯। এক ম্যাচ কম খেলা পর্তুগাল ৮ পয়েন্ট কম নিয়ে আছে দ্বিতীয় স্থানে। লিথুয়ানিয়ার মাঠে ২-১ গোলে জেতা সার্বিয়া ছয় ম্যাচে ১০ পয়েন্ট নিয়ে আছে তিন নম্বরে। মূল পর্বে ওঠার লড়াইয়ে ভালোভাবেই আছে তারা। ‘এ’ গ্র“পে বুলগেরিয়ার মাঠে ৬-০ গোলে জেতা ইংল্যান্ড ছয় ম্যাচে ১৫ পয়েন্ট নিয়ে আছে শীর্ষে। ৩ পয়েন্ট কম নিয়ে দুই নম্বরে আছে চেক রিপাবলিক। ঘরের মাঠে মন্টেনেগ্রোকে ২-০ গোলে হারানো কসোভো ১১ পয়েন্ট নিয়ে আছে তৃতীয় স্থানে। মূল পর্বে ওঠার সম্ভাবনা আছে তাদেরও। ‘এইচ’ গ্র“পে ফ্রান্সের মাঠে ১-১ গোলে ড্র করে ফিরেছে তুরস্ক। গ্র“পের অষ্টম রাউন্ড শেষে দুই দলের পয়েন্ট সমান ১৯; তবে মুখোমুখি লড়াইয়ে এগিয়ে শীর্ষে আছে তুর্কিরা। অ্যান্ডোরাকে ২-০ গোলে হারিয়ে ১৫ পয়েন্ট নিয়ে তিন নম্বরে আছে আইসল্যান্ড। আলবেনিয়ার পয়েন্ট ১২।

মটরশুঁটি শীতপ্রধান ও আংশিক আর্দ্র জলবায়ুর উপযোগী ফসল

কৃষি প্রতিবেদক ॥ মটরশুঁটি দেখলে প্রথমেই মনে পড়ে ছোট বেলায় পাঠ্য বইতে পড়া, পল্লী কবি জসীমউদ্দীনের সেই বিখ্যাত কবিতা ‘নিমন্ত্রণে’র কথা। তখন কবিতা পড়তে পড়তে মনে হতো আমিও সেই নিমন্ত্রণের অংশীদার। কবিতার এই অংশটুকু আমার মতো অনেকেরই হয়তো খুব প্রিয় ছিল- তুমি যদি যাও, দেখিবে সেখানে মটর-লতার সনে/শিম আর শিম, হাত বাড়ালেই মুঠি ভরে সেইক্ষণে। তুমি যদি যাও সেসব কুড়ায়ে, নাড়ার আগুনে পোড়ায়ে পোড়ায়ে/ খাব আর যত গেঁয়ো চাষিদের ডাকিয়া নিমন্ত্রণে, হাসিয়া হাসিয়া মুঠি মুঠি তাহা বিলাইব জনে জনে। মটরশুঁটি আমাদের অনেকেরই খুব প্রিয় সবজি। এটা কাঁচা, পাকা যেমন ইচ্ছা খাওয়া যায়। কচি আর কাঁচাগুলো এমনিতে ছিলে খেতে খুবই মজা আর স্বাদও অতুলনীয়, আবার নাড়ার আগুনে পুড়িয়ে বা সিদ্ধ করে খেতেও ভারী মজা লাগে। বড় যে কোনো ধরনের মাছ বা ছোট মাছ রান্না করার শেষের দিকে কিছু মটরশুঁটি দিয়ে দিলে যেন দিগুণ বেড়ে যায় তরকারির স্বাদ। বিশেষ করে রুই, কাতলা, পাবদা, কই, শোল, শিং, মাগুর ইত্যাদি। এ ছাড়া বিকেলের নাস্তায় মটরশুঁটি ভাজির তুলনা নেই। পাকা শুকানো মটরশুঁটির চটপটি, ফুচকা কার না প্রিয়। বিভিন্ন খাবারের স্বাদ বাড়াতে মটরশুঁটির জুড়ি নেই। মটরশুঁটি হলো লিগিউমিনাস জাতীয় উদ্ভিদ, গোলাকার বীজ। মটরশুঁটি বর্ষজীবী উদ্ভিদ। আমাদের দেশে শীতকালে মটরশুঁটির চাষ করা হয়। বিশ্বের বিভিন্ন দেশে বিভিন্ন সময়ে মটরশুঁটির চাষ করা হয়ে থাকে। প্রতিটি মটরশুঁটির মধ্যে বেশ কয়েকটি বীজ থাকে, যদিও এটি এক প্রকারের ফল। গড়ে প্রতিটি মটরশুঁটির ওজন ০.১ থেকে ০.৩৬ গ্রাম। মটরশুঁটি লতানো গাছ। এই গাছ দুই থেকে আড়াই ফুট পর্যন্ত লম্বা হতে পারে। মটরশুঁটির পাতা মিষ্টি ঘ্রাণ যুক্ত। ফুল অনেক সুন্দর দেখতে। মটরশুঁটির ক্ষেত যখন ফুলে ফুলে ভরে যায়, তখন সে দৃশ্য দৃষ্টিনন্দন হয়ে উঠে। আমাদের দেশে এখন বিভিন্ন জাতের মটরশুঁটির চাষ আবাদ করা হয়ে থাকে তার মধ্য আরকেল, বনভিল, গ্রিন ফিস্ট, আলাস্কা, স্নো-ফ্লেক, সুগার স্ন্যাপ উল্লেখযোগ্য। বাংলাদেশ কৃষি গবেষণা ইনস্টিটিউট বারি মটরশুঁটি-১, বারি মটরশুঁটি-২ এবং বারি মটরশুঁটি-৩ নামের ৩টি জাত অবমুক্ত করেছে। মটরশুঁটি শীতপ্রধান ও আংশিক আর্দ্র জলবায়ুর উপযোগী ফসল। মটরশুঁটির জন্য দোআঁশ ও বেলে দোআঁশ মাটি সবচেয়ে ভালো। মাটি অবশ্যই সুনিষ্কাশিত হতে হবে। বাংলাদেশে প্রায় ২০ হাজার হেক্টর জমিতে মটরশুঁটির চাষ হয়। প্রতি ১০০ গ্রাম মটরশুঁটি থেকে প্রায় ৮০-১০০ কিলোক্যালোরি শক্তি পাওয়া যায়। এতে কার্বোহাইড্রেট ১৪.৫ গ্রাম, ফ্যাট ০.৫ গ্রাম এবং প্রোটিন ৫.৪ গ্রাম আছে। এ ছাড়া মটরশুঁটিতে আরও আছে ক্যালসিয়াম, পটাশিয়াম, জিঙ্ক ম্যাগনেশিয়াম, আয়রন, ভিটামিন সি, ফলিক অ্যাসিড, বিটাক্যারোটিন, ফসফরাস, ভিটামিন বি-কমপ্লেক্স। সামান্য পরিমাণে ভিটামিন কেও আছে। মটরশুঁটিতে রয়েছে প্রচুর পরিমাণে আঁশ ও প্রোটিন। ফ্যাটের পরিমাণ খুব কম। এতে প্রোটিন, ফাইবার, মাইক্রোনিউট্রিয়েন্ট এবং প্রচুর পরিমাণে ভিটামিন-এ আছে। আমাদের দেশে শুকনো মটরশুঁটি ডাল হিসেবে ব্যবহার করা হয়। এই ডাল চটপটি এবং বিভিন্নভাবে রান্না করে খাওয়া হয়। এ ছাড়াও কচি মটরশুঁটি সবজি এবং গাছের কচি ডগা শাক হিসেবে খাওয়া হয়। এই শাক খেতে দারুণ সুস্বাদু। আমাদের দেশে মূলত সবজি হিসেবে মটরশুঁটি রান্নায় ব্যবহৃত হয়।

বুলগেরিয়া ফুটবল প্রধানকে সরে যেতে বললেন প্রধানমন্ত্রী

ক্রীড়া প্রতিবেদক ॥ ইংল্যান্ডের কৃষ্ণাঙ্গ খেলোয়াড়দের লক্ষ্য করে বুলগেরিয়া সমর্থকদের করা বর্ণবাদী আচরণের ঘটনায় বুলগেরিয়ার ফুটবল প্রধানকে পদত্যাগের আহ্বান জানিয়েছেন দেশটির প্রধানমন্ত্রী বয়কো বরিসভ। বুলগেরিয়ার জাতীয় স্টেডিয়ামে সোমবার স্বাগতিকদের বিপক্ষে ২০২০ ইউরো বাছাইয়ে ৬-০ গোলে জেতা ম্যাচে বর্ণবাদের শিকার হন ইংল্যান্ডের কৃষ্ণাঙ্গ খেলোয়াড়রা। এজন্য দুই বার ম্যাচ থামিয়ে দেন রেফারি। বুলগেরিয়া সমর্থকদের এমন আচরণে ক্ষোভ প্রকাশ করেছেন দেশটির প্রধানমন্ত্রী। ম্যাচের ভিডিও ফুটেজ দেখার পর ফেসবুক পোস্টে দেশটির ফুটবল ইউনিয়নের প্রধান বরিস্লাভ মিহাইলভকে পদত্যাগ করতে বলেন বয়কো। “আমি বরিস্লাভ মিহাইলভকে বুলগেরিয়ান ফুটবল ইউনিয়নের প্রেসিডেন্টের পদ থেকে এখনই পদত্যাগের আহ্বান করছি। বুলগেরিয়ার মত বিশ্বের অন্যতম সহনশীল দেশের জন্য এটা গ্রহণযোগ্য নয়, যেখানে বর্ণবাদ ও জেনোফোবিয়ায় না জড়িয়ে বিভিন্ন জাতি ও ধর্মের মানুষ সম্মিলিতভাবে শান্তিতে বসবাস করে।” গত জুনে বুলগেরিয়ার ভাসিল লেভাস্কি স্টেডিয়ামে কসোভো ও চেক রিপাবলিকও বর্ণবাদী আচরণের শিকার হয়েছিল। একই পরিস্থিতিতে পড়ার শঙ্কা আগে থেকেই ছিল ইংল্যান্ডের। এ নিয়ে খেলোয়াড়দের সঙ্গে সপ্তাহজুড়ে আলোচনা করেছিলেন দলটির কোচ গ্যারেথ সাউথগেট। বুলগেরিয়ার ফুটবল কর্তৃপক্ষকে এ বিষয়ে আগেই জানানো হয়েছিল, তবে তারা এটাকে পাত্তা দেয়নি।

বুলগেরিয়া ফুটবল প্রধানকে সরে যেতে বললেন প্রধানমন্ত্রী

ক্রীড়া প্রতিবেদক ॥ ইংল্যান্ডের কৃষ্ণাঙ্গ খেলোয়াড়দের লক্ষ্য করে বুলগেরিয়া সমর্থকদের করা বর্ণবাদী আচরণের ঘটনায় বুলগেরিয়ার ফুটবল প্রধানকে পদত্যাগের আহ্বান জানিয়েছেন দেশটির প্রধানমন্ত্রী বয়কো বরিসভ। বুলগেরিয়ার জাতীয় স্টেডিয়ামে সোমবার স্বাগতিকদের বিপক্ষে ২০২০ ইউরো বাছাইয়ে ৬-০ গোলে জেতা ম্যাচে বর্ণবাদের শিকার হন ইংল্যান্ডের কৃষ্ণাঙ্গ খেলোয়াড়রা। এজন্য দুই বার ম্যাচ থামিয়ে দেন রেফারি। বুলগেরিয়া সমর্থকদের এমন আচরণে ক্ষোভ প্রকাশ করেছেন দেশটির প্রধানমন্ত্রী। ম্যাচের ভিডিও ফুটেজ দেখার পর ফেসবুক পোস্টে দেশটির ফুটবল ইউনিয়নের প্রধান বরিস্লাভ মিহাইলভকে পদত্যাগ করতে বলেন বয়কো। “আমি বরিস্লাভ মিহাইলভকে বুলগেরিয়ান ফুটবল ইউনিয়নের প্রেসিডেন্টের পদ থেকে এখনই পদত্যাগের আহ্বান করছি। বুলগেরিয়ার মত বিশ্বের অন্যতম সহনশীল দেশের জন্য এটা গ্রহণযোগ্য নয়, যেখানে বর্ণবাদ ও জেনোফোবিয়ায় না জড়িয়ে বিভিন্ন জাতি ও ধর্মের মানুষ সম্মিলিতভাবে শান্তিতে বসবাস করে।” গত জুনে বুলগেরিয়ার ভাসিল লেভাস্কি স্টেডিয়ামে কসোভো ও চেক রিপাবলিকও বর্ণবাদী আচরণের শিকার হয়েছিল। একই পরিস্থিতিতে পড়ার শঙ্কা আগে থেকেই ছিল ইংল্যান্ডের। এ নিয়ে খেলোয়াড়দের সঙ্গে সপ্তাহজুড়ে আলোচনা করেছিলেন দলটির কোচ গ্যারেথ সাউথগেট। বুলগেরিয়ার ফুটবল কর্তৃপক্ষকে এ বিষয়ে আগেই জানানো হয়েছিল, তবে তারা এটাকে পাত্তা দেয়নি।

মালেক আফসারীকে চিনেন না কোয়েল মল্লিক

বিনোদন বাজার ॥ শাকিব খানকে নিয়ে ‘হ্যাকার’ নামে একটি সিনেমার ঘোষণা দিয়েছেন মালেক আফসারী। আর সে সিনেমায় নায়িকা হিসেবে কলকাতার কোয়েল মল্লিক থাকছেন বলেও জানান তিনি।

কিন্তু স্বয়ং কোয়েল মল্লিক বলেছেন, ‘মালেক আফসারীকে চিনি না। তবে শাকিব খানকে চিনি। আর সম্প্রতি কেউ বাংলাদেশ থেকে আমার সাথে ছবির ব্যাপারে কথা বলেনি। তাই ওখানকার কোন ছবিই করছি না এই মুহূর্তে।’

কোয়েল মল্লিকের বক্তব্য জানাতেই মালেক আফসারী স্বীকার করে নেন খবরটি ভুল। যদিও এর আগে তিনিই গণমাধ্যমকে বলেছিলেন কোয়েল থাকছেন শাকিবের বিপরীতে। তিনি বলেন, ‘কোয়েল ঠিকই বলেছেন। তার সাথে আমাদের কোনো কথাবার্তা হয়নি। তবে হতে কতক্ষণ! শাকিব খানের সাথে তার ভালো সম্পর্ক। কিন্তু আমার ছবিতে কোয়েল মল্লিককেই অভিনয় করতে হবে এমন না। আমি চাই নতুন মুখ। নতুন কেউ যদি নাচ জানে তার ভেতর থেকে আমি অভিনয় বের করে নিতে পারব।’

তিনি আরও বলেন, ‘কোয়েল মল্লিকের সাথে কাজ করার কথা হচ্ছিল ‘পাসওয়ার্ড’ ছবির আগে থেকে। তখন আমরা মিটিং করছিলাম। সেসময় কলকাতা থেকে কোয়েল মল্লিক ফোন করেছিলেন শাকিব খানকে। কথায় কথায় শাকিব খান তাকে সিনেমা করার প্রস্তাব দেন। তখন থেকে মূলত মিডিয়ায় খবরটি ছড়ায়।’ এর আগে বেশ কয়েকবার কোয়েল মল্লিক বাংলাদেশের ছবিতে অভিনয় করছেন বলে খবর বের হলেও প্রতিবারই খবরটি মিথ্যে হয়।

আবরার পরিবারের পাশে জাতীয় মানবাধিকার সমিতি কুষ্টিয়া  জেলা নেতৃবৃন্দ

বুয়েটের মেধাবী ছাত্র আবরার ফাহাদ রাব্বি’র নিজ গ্রাম কুষ্টিয়ার কুমারখালী উপজেলার কয়া ইউনিয়নের রায়ডাঙ্গা গোরস্থানে গতকাল সকালে কবর জিয়ারত শেষে পরিবারের সদস্যদের সমবেদনা জানান বাংলাদেশ জাতীয় মানবাধিকার সমিতি কুষ্টিয়া  জেলা শাখার নেতৃবৃন্দ। জেলা সভাপতি জান্নাতুল ফেরদৌস জিনিয়া ও সাধারণ সম্পাদক শাহারিয়া ইমন রুবেলের নেতৃত্বে উপস্থিত ছিলেন যুগ্ম সাধারণ সম্পাদক রাব্বি আলামিন, দপ্তর সম্পাদক জুলিয়া পারভীন, সদস্য কনকসহ মাহফুজ্জামান তিতাস, সজল, শেখ সাহেদ হাসান প্রেম, নয়ন প্রমুখ। উল্লেখ্য, গত ৭ অক্টোবর বুয়েট ছাত্রলীগের কিছু উৎশৃংখল ছাত্রের হাতে নৃশংসভাবে হত্যার শিকার হয় কুষ্টিয়া কৃতিসন্তান আবরার ফাহাদ রাব্বি। সংবাদ বিজ্ঞপ্তি

পরিকল্পিতভাবে ছাত্র রাজনীতি বন্ধের পাঁয়তারা করছে সরকার – রিজভী

ঢাকা অফিস ॥ সরকার পরিকল্পিতভাবে ছাত্র রাজনীতি বন্ধের পাঁয়তারা করছে বলে অভিযোগ করেছেন বিএনপির জ্যেষ্ঠ যুগ্ম মহাসচিব রুহুল কবির রিজভী। আবরার ফাহাদ হত্যাকান্ডের পর বাংলাদেশ প্রকৌশল বিশ্ববিদ্যালয়ে ছাত্র রাজনীতি বন্ধের সমালোচনা করে তিনি বলেন, ছাত্রলীগের অপকর্ম দিয়ে ছাত্র রাজনীতি বা সাংগঠনিক রাজনীতি ক্যাম্পাসে বন্ধের উদ্যোগ চলছে। কারণ সরকার এটি করেছে পরিকল্পিতভাবে। বিরাজনীতিকরণের এটি একটি দৃষ্টান্ত। এটি বহু আগে ওয়ান-ইলেভেন থেকেই শুরু হয়েছে। একটি ক্ষেত্র প্রস্তুত করতে হবে, তাই ছাত্রলীগকে দিয়েই, নিজের সন্তানদের দিয়েই সেই ক্ষেত্র প্রস্তুত করলেন তারা। নয়া পল্টনে বিএনপির কেন্দ্রীয় কার্যালয়ে গতকাল সোমবার দুপুরে এক সংবাদ সম্মেলনে রিজভী বলেন, ছাত্র রাজনীতি অপভ্রংশ অপরাজনীতি তথা সন্ত্রাস-দুর্নীতি এবং রক্তপাতের অজুহাতে সমগ্র ছাত্র রাজনীতি বন্ধ করে দেওয়াটা গভীর মাস্টারপ্ল্যানেরই অংশ। ছাত্র রাজনীতিকে যারা কলুষিত করেছে, মারামারি-দলাদলিকে যারা উৎসাহিত করেছে, ক্যাম্পাসে আধিপত্য প্রতিষ্ঠা বিস্তারে যারা মদদ দিয়েছে তারাই প্রকৃত ছাত্র রাজনীতিকে মানুষের চোখে হেয় করেছে, তারাই এখন সমগ্র ছাত্র রাজনীতিকে বন্ধ করে দিতে চাচ্ছে। তিনি বলেন, ছাত্রলীগের কদাচারের জন্য সমগ্র ছাত্র সমাজ বা ছাত্র রাজনীতি দায়ী হতে পারে না। এর জন্য বহু শতাব্দীর অ্যাকাডেমিক ফ্রিডমসহ বহু মুক্তি আন্দোলন সংগ্রামের পথিকৃৎ ছাত্র সমাজে ছাত্র রাজনীতিকে কাঠগড়ায় দাঁড় করানো ঠিক নয়। ছাত্রলীগের কর্মকা- প্রসঙ্গে তিনি বলেন, ছাত্র সমাজের সেই মহিমামন্ডিত ঐতিহ্য ম্লান করেছে বর্তমান ক্ষমতাসীন গোষ্ঠির ছাত্র সংগঠন। স্বাধীনতার পরপরই ব্যালট বাক্স ছিনতাই ও শহীদ মিনারে ছাত্রী লাঞ্ছনার মধ্য দিয়ে এই ছাত্রলীগ তাদের যাত্রা শুরু। তাদের উত্তরসূরিরাই বর্তমানে বিশ্ববিদ্যালয়ে হলে হলে প্রচলিত বিধিবিধানকে তোয়াক্কা না করে নিষ্ঠুর ও সর্বনাশা নির্যাতন ব্যবস্থা গড়ে তুলেছে। আর এটা সম্ভব হয়েছে সরকারের ছত্রছায়ায়। সরকারের প্রতি বিশ্ববিদ্যালয় প্রশাসনের নিরঙ্কুশ আনুগত্যের কারণেই ‘ছাত্রলীগ বিচারের তোয়াক্কা করছে না’ বলে মন্তব্য করেন রিজভী। দুর্নীতির বিরুদ্ধে অভিযান শুরু হয়েছে- আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক এবং সড়ক পরিবহন ও সেতুমন্ত্রী ওবায়দুল কাদেরের এ বক্তব্যের সমালোচনা করে বিএনপির সিনিয়র যুগ্ম-মহাসচিব রুহুল কবির রিজভী বলেন, ভোট দিতে না দেওয়া কি সুনীতি? এটাতো মহাদুর্নীতি। সরকারদলীয় ক্যাডারদের দিয়ে দিনে-দুপুরে ভোট জালিয়াতি মহাদুর্নীতির বহিঃপ্রকাশ। রুহুল কবির রিজভী অভিযোগ করেন, (গতকাল সোমবার) ঝিনাইদহ জেলার মহেষপুর ও চট্টগ্রামের সাতকানিয়াতে উপজেলা নির্বাচন অনুষ্ঠিত হচ্ছে। সেখানে ভোটারদের কেন্দ্রে ঢুকতে দেওয়া হয়নি। মহেষপুরে প্রত্যেকটি ভোট কেন্দ্র থেকে বিএনপি প্রার্থীর এজেন্টদের মারধর করে বের করে দেওয়া হয়েছে। রাস্তার মোড়ে-মোড়ে লাঠিসোটা ও ধারালো অস্ত্র নিয়ে দাঁড়িয়ে আছে আওয়ামী সন্ত্রাসীরা। একই অবস্থা সাতকানিয়াতেও। এ দুই উপজেলাতে আওয়ামী সন্ত্রাসীদের সঙ্গে পাল্লা দিয়ে পুলিশও ভোটারদের বের করে দিচ্ছে। এটা হলো ওবায়দুল কাদের সাহেবদের দুর্নীতির বিরুদ্ধে অভিযানের চিত্র। সংবাদ সম্মেলনে অন্যান্যের মধ্যে উপস্থিত ছিলেন বিএনপির প্রকাশনা সম্পাদক হাবিবুল ইসলাম হাবিব, স্বেচ্ছাসেবক বিষয়ক সম্পাদক মীর সরফত আলী সপু, নির্বাহী কমিটির সদস্য আবু নাসের মোহাম্মদ রহমাতুল্লাহ, আমিনুল ইসলাম প্রমুখ।

 

মিরপুরে গ্রাহক সেবায় পল্লী বিদ্যুতের উঠান বৈঠক

আমলা অফিস ॥ কুষ্টিয়ার মিরপুর উপজেলায় গ্রাহক সেবায় পল্লী বিদ্যুতের উঠান বৈঠক অনুষ্ঠিত হয়েছে। গতকাল সোমবার দিনব্যাপি উপজেলার হালসা এলাকার বিভিন্ন স্থানে এ উঠান বৈঠক অনুষ্ঠিত হয়। কুষ্টিয়া পল্লী বিদ্যুত সমিতির মিরপুর জোনাল অফিসের উদ্যোগে “ শেখ হাসিনার উদ্যোগ, ঘরে ঘরে বিদ্যুৎ” এই শ্লোগানে মুজিব বর্ষ উপলক্ষ্যে বিশেষ সেবার অংশ হিসেবে কুষ্টিয়া পল্লী বিদ্যুৎ সমিতির মিরপুর জোনাল অফিসের সার্বিক কর্মকান্ড প্রচারের লক্ষ্যে এ উঠান বৈঠক অনুষ্ঠিত হয়। এতে কুষ্টিয়া পল্লী বিদ্যুৎ সমিতির মিরপুর জোনাল অফিসের ডেপুটি জেনারেল ম্যানেজার এনামুল হকের সভাপতিত্বে প্রধান অতিথির বক্তব্য রাখেন কুষ্টিয়া পল্লী বিদ্যুৎ সমিতির জেনারেল ম্যানেজার হারুন-অর-রশিদ। এসময় বিশেষ অতিথির বক্তব্য রাখেন কুষ্টিয়া পল্লী বিদ্যুৎ সমিতির এজিএম (এইচআর) মফিজুল ইসলাম, পল্লী বিদ্যুৎ সমিতির হালসা অফিসের ইনচার্জ আলতাফ হোসেন, ওয়ারিং পরিদর্শক হাসানুজ্জামান প্রমুখ। এসময় স্থানীয় গণ্যমান্য ব্যক্তিবর্গ, গ্রাহক ও সাধারন জনগন উপস্থিত ছিলেন। পরে পল্লী বিদ্যুৎ সমিতির পক্ষ থেকে গ্রাহক ও সাধারন মানুষের সচেতনতা বৃদ্ধির লক্ষ্যে লিফলেট বিতরন করা হয়।

ভেড়ামারায় মেয়াদোত্তীর্ণ বীজ ও ঔষধ রাখার দায়ে জ্যোতি বীজ ভান্ডার ও বিজয়া ঔষধালয়কে জরিমানা

আল-মাহাদী ॥ ভোক্তা অধিকার সংরক্ষণ অধিদপ্তরের উদ্যোগে গতকাল সোমবার দুপুরে কুষ্টিয়ার ভেড়ামারা বাজারে ভ্রাম্যমান আদালত পরিচালিত হয়। ভেড়ামারা উপজেলা নির্বাহী অফিসার ও নির্বাহী ম্যাজিষ্ট্রেট সোহেল মারুফ এ আদালত পরিচালনা করেন। এসময় উপস্থিত ছিলেন, ভোক্তা অধিকার সংরক্ষণ অধিদপ্তরের ম্যাজিষ্ট্রেট সেলিমুজ্জামান, ভেড়ামারা উপজেলা কৃষি সম্প্রসারণ অফিসার শাহানাজ ফেরদৌস ও ভেড়ামারা থানার এস.আই রিফাজউদ্দিন। ভ্রাম্যমাণ আদালত জ্যোতি বীজ ভান্ডারকে মেয়াদোত্তীর্ণ বীজপণ্য রাখার দায়ে নগদ ৫ হাজার টাকা ও বিজয়া ঔষধালয়কে ৩ হাজার টাকা অর্থদন্ড দেয়।

শঙ্কা কাটিয়ে বুয়েটে ভর্তি পরীক্ষা অনুষ্ঠিত

ঢাকা অফিস ॥ আবরার ফাহাদকে পিটিয়ে হত্যার প্রতিবাদে আন্দোলনে উত্তাল বুয়েট ক্যাম্পাসে কোনোরকম শঙ্কা ছাড়াই অনুষ্ঠিত হলো ২০১৯-২০২০ শিক্ষাবর্ষের ভর্তি পরীক্ষা। ভর্তি পরীক্ষার কারণে আন্দোলনকারীরা তাদের কার্যক্রম শিথিল করলে বুয়েট কর্তৃপক্ষ আজ ভর্তি পরীক্ষার আয়োজন করে। সোমবার (১৪ অক্টোবর) সকাল ৯টায় এই ভর্তি পরীক্ষা শুরু হয়। দুপুর ১২টা পর্যন্ত টানা তিন ঘণ্টা লিখিত পরীক্ষা অনুষ্ঠিত হয়। স্থাপত্য বিভাগে ভর্তির জন্য আবেদনকারীদের দুপুর ২টায় অঙ্কন পরীক্ষা শুরু হবে। বিকেল ৪টা পর্যন্ত চলবে এই পরীক্ষা। এদিকে ভর্তি পরীক্ষা দিতে এসে সন্তোষ প্রকাশ করেছেন পরীক্ষার্থী ও অভিভাবকরা। ভর্তি পরীক্ষা শেষে আবীর নামে এক শিক্ষার্থী বলেন, ‘পরীক্ষা ভালো হয়েছে। কোনো রকম সমস্যায় পড়তে হয়নি।‘ বুয়েট ক্যাম্পাসে অবস্থান করে দেখা যায়, বেলা ১১টা ৫৫ মিনিটে একবার ওয়ার্নিং দেয়া হয় পরীক্ষার্থীদের। এরপর পাঁচ মিনিট পর ১১টা ৫৯ মিনিটে পরীক্ষা সমাপ্তির ঘণ্টা বাজে। এর আগে সকাল থেকেই পরীক্ষার্থী ও অভিভাবকদের ভিড় ছিল বুয়েট ক্যাম্পাসে। সকাল ৯টায় পরীক্ষার্থীরা পরীক্ষা দিতে কক্ষে প্রবেশ করলে অভিভাবকরা বাইরে অবস্থান নেন। পরীক্ষার্থী ও অভিভাবকদের জন্য ফ্রি পানির ব্যবস্থা করে বুয়েট কর্তৃপক্ষ। এছাড়াও অভিভাবকদের জন্য বসার সুব্যবস্থাও রাখে কর্তৃপক্ষ। বুয়েটে রাসায়নিক প্রকৌশল বিভাগে ৬০, ধাতব প্রকৌশলে ৫০, সিভিল ইঞ্জিনিয়ারিংয়ে ১৯৫, পানিসম্পদ প্রকৌশলে ৩০, মেকানিক্যাল ইঞ্জিনিয়ারিংয়ে ১৮০, নৌস্থাপত্য ও সামুদ্রিক প্রকৌশলে ৫৫, শিল্প ও উৎপাদন প্রকৌশলে ৩০,  বৈদ্যুতিক ও ইলেকট্রনিক প্রকৌশলে ১৯৫, কম্পিউটার বিজ্ঞান ও প্রকৌশলে ১২০, বায়োমেডিক্যাল ইঞ্জিনিয়ারিংয়ে ৩০, স্থাপত্য বিভাগে ৫৫ এবং নগর ও অঞ্চল পরিকল্পনা বিভাগে ৩০টি আসন রয়েছে। বুয়েটে ভর্তি আবেদন শুরু হয় ৩১ আগস্ট। আবেদন ও ভর্তি ফি প্রদানের শেষ দিন ছিল ৯ সেপ্টেম্বর। ভর্তি পরীক্ষার যোগ্য প্রার্থীদের নামের তালিকা প্রকাশ করা হয় ১৮ সেপ্টেম্বর। আবেদনকারীদের ভেতর থেকে প্রথম ১২ হাজার জনকে ভর্তি পরীক্ষায় অংশগ্রহণের সুযোগ দেয়া হয়। ভর্তি পরীক্ষার ফল আগামী ২৬ অক্টোবর প্রদান করা হবে। ভর্তি পরীক্ষার অল্প কয়েক দিন আগে বিশ্ববিদ্যালয়টির শিক্ষার্থী আবরার ফাহাদকে পিটিয়ে হত্যার প্রতিবাদে আন্দোলনে উত্তাল হয়ে ওঠে বুয়েট ক্যাম্পাস। এ সময় আন্দোলনকারী শিক্ষার্থীরা ১০ দফা দাবি জুড়ে দেয়। তাদের দাবি মানা না হলেও ভর্তি পরীক্ষা হতে দেয়া হবে না বলেও জানায় আন্দোলনকারীরা। একপর্যায়ে বুয়েট কর্তৃপক্ষ তাদের দাবি-দাওয়া মেনে নিতে শুরু করলে ১৩ ও ১৪ অক্টোবর আন্দোলন শিথিল করে আন্দোলনকারীরা।

কুষ্টিয়া পৌর ৩নং ওয়ার্ড আওয়ামীলীগের কাউন্সিল অনুষ্ঠিত

নিজ সংবাদ ॥ কুষ্টিয়া শহর আওয়ামী লীগ ৩নং ওয়ার্ড শাখার ত্রি-বার্ষিক কাউন্সিল অনুষ্ঠিত হয়েছে। এতে প্রধান অতিথির বক্তব্য রাখেন বাংলাদেশ আওয়ামীলীগ জাতীয় পরিষদের সদস্য ও জেলা আওয়ামীলীগের সহ-সভাপতি আলহাজ্ব মতিয়ার রহমান মজনু। উদ্বোধন করেন শহর আওয়ামীলীগের সভাপতি তাইজাল আলী খান। প্রধান বক্তার বক্তব্য রাখেন কুষ্টিয়া সদর উপজেলা পরিষদের চেয়ারম্যান ও শহর আওয়ামীলীগের সাধারণ সম্পাদক আতাউর রহমান আতা। বিশেষ অতিথি ছিলেন জেলা আওয়ামীলীগের সহ-সভাপতি বেগম নূরজাহান, শেখ গিয়াস উদ্দিন আহমেদ মিন্টু, সাংগঠনিক সম্পাদক ডাঃ আমিনুল হক রতন, শেখ হাসান মেহেদী, সদর উপজেলা আওয়ামীলীগের সভাপতি এ্যাডঃ আ.স.ম আক্তারুজ্জামান মাসুম, জেলা আওয়ামীলীগের যুব ও ক্রীড়া বিষয়ক সম্পাদক খন্দকার ইকবাল মাহমুদ। রবিবার সন্ধ্যা সাড়ে ৬ টায় কুষ্টিয়া শহরস্থ ৪নং সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয় মাঠে অনুষ্ঠিত এ কাউন্সিলে সভাপতিত্ব করেন শহর আওয়ামী লীগ ৩নং ওয়ার্ড শাখার সভাপতি কাউন্সিলর বদরুল ইসলাম বাদল। সার্বিক ব্যাবস্থাপনায় ছিলেন শহর আওয়ামী লীগ ৩নং ওয়ার্ড শাখার সাধারণ সম্পাদক মতিউর রহমান মতি। সঞ্চালনায় ছিলেন শহর আওয়ামী লীগ ৩নং ওয়ার্ড শাখার যুগ্ম-সম্পাদক এনামূল হক বাবু। এ সময় আওয়ামী লীগ ও এর অঙ্গ সহযোগি সংগঠনের শত শত নেতা-কর্মী উপস্থিত ছিলেন।

পাঁচ বছরের শিশু তুহিন হত্যায় ‘পরিবারের সদস্য’- পুলিশ

ঢাকা অফিস ॥ সুনামগঞ্জে পাঁচ বছরের শিশু তুহিন মিয়া হত্যায় পরিবারের ২/৩ জন সদস্যের সম্পৃক্ততা পাওয়ার কথা বলেছে পুলিশ। সোমবার সন্ধ্যায় দিরাই থানায় আয়োজিত এক সংবাদ সম্মেলনে এ তথ্য জানান সুনামগঞ্জের অতিরিক্ত পুলিশ সুপার মিজানুর রহমান। রোববার শেষ রাতে দিরাই উপজেলার রাজানগর ইউনিয়নের কেজাউড়া গ্রামের কৃষক আব্দুল বাসিতের ছেলে তুহিন মিয়াকে (৫) হত্যা করে লাশ গাছে ঝুলিয়ে রাখে অজ্ঞাত খুনিরা। এ ঘটনায় জিজ্ঞাসাবাদের জন্য সোমবার বিকালে তুহিনের বাবা আব্দুল বাসির, চাচা আব্দুল মসব্বির, নাসির উদ্দিন, চাচি খায়রুল নেছা, চাচাত বোন তানিয়া ও প্রতিবেশী আজিজুল ইসলামসহ সাতজনকে পুলিশ থানায় নিয়েছে। সংবাদ সম্মেলনে মিজানুর রহমান বলেন, “আমরা তুহিনের পরিবারের সাতজনকে জিজ্ঞাসাবাদের জন্য নিয়ে এসেছিলাম। তাদের জিজ্ঞাসাবাদে ২/৩ জনের সম্পৃক্ততা আমরা পেয়েছি। যে ২/৩ জন হত্যাকান্ডের সঙ্গে জড়িত তারা পুলিশের কাছে বিষয়টি স্বীকার করেছে। “প্রতিহিংসাবশত হতে পারে, পূর্ব শক্রতার জের ধরে প্রতিপক্ষকে ফাঁসাতে হতে পারে, আবার মামলা সংক্রান্ত বিষয়ে এ হত্যাকান্ড ঘটতে পারে; তদন্তের স্বার্থে সবকিছু বলা যাচ্ছে না।” মিজানুর রহমান আরও বলেন, নিহতের বাবাসহ পরিবারের কয়েকজন সদস্য বিভিন্ন মামলার আসামি। এলাকায় তাদের একাধিক প্রতিপক্ষ রয়েছে। এক পক্ষ আরেক পক্ষকে ঘায়েল করতে চায়। তবে কারা হত্যাকান্ডে জড়িত তা এড়িয়ে যান অতিরিক্ত পুলিশ সুপার মিজানুর রহমান। তিনি বলেন, “এখনও জিজ্ঞাসাবাদ করা হচ্ছে, সবাইকে আটক দেখানো হচ্ছে না। পুরোপুরি জিজ্ঞাসাবাদ শেষ হলে হত্যা মামলা দায়ের করা হবে।” রোববার রাতের খাবার খেয়ে তুহিনের পরিবারের সবাই ঘুমিয়ে পড়েন। রাত ৩টার দিকে তুহিনের চাচাত বোন সাবিনা বেগম ঘরের দরজা খোলা দেখে চিৎকার শুরু করলে পরিবারের সদস্যরা জেগে উঠে দেখেন তুহিন ঘরে নেই। খোঁজাখুঁজির পর বাড়ি থেকে কিছু দূরে মসজিদের পাশে একটি গাছে ঝুলন্ত অবস্থায় তার লাশ পাওয়া যায়। পুলিশ লাশ উদ্ধারের সময় শিশুটির পেটে দুইটি ছুরি গাঁথা ছিল। তার কান ও লিঙ্গও কেটে নেয় হত্যাকারীরা।

 

সুনামগঞ্জে ৫ বছরের শিশুকে নৃশংশভাবে হত্যা

ঢাকা অফিস ॥ সুনামগঞ্জের দিরাইয়ে পাঁচ বছরের এক শিশুকে নৃশংসভাবে হত্যা করে লাশ গাছে ঝুলিয়ে রাখা হয়েছে। গতকাল সেমাবার দিরাই থানার ওসি কে এম নজরুল জানান, গত রাতে এ হত্যাকান্ডের শিকার শিশু তুহিন রাজানগর ইউনিয়নের কেজাউড়া গ্রামের কৃষক আবদুল বাসিতের ছেলে। নিহতের স্বজনদের উদ্ধৃত করে ওসি জানান, গত রোববার রাতের খাবার খেয়ে ঘুমিয়ে পড়ে ওই পরিবারের সদস্যরা। রাত ৩টার দিকে তুহিনের চাচাত বোন সাবিনা বেগম ঘরের দরজা খোলা দেখে চিৎকার শুরু করে। চিৎকার শুনে পরিবারের সদস্যরা ঘুম থেকে উঠে দেখে তুহিন ঘরে নেই। খুঁজোখুঁজি করে বাড়ি থেকে কিছু দূরে মসজিদের পাশে একটি গাছের সাথে ঝুলন্ত অবস্থায় তার লাশ পাওয়া যায়। ঘটনাস্থলে পৌঁছে পুলিশ লাশ উদ্ধারের সময় শিশুটির পেটে দুইটি ছুরি গাঁথা রয়েছে দেখতে পায় বলে জানান ওসি। শিশুটির আত্মীয় ইমরান হোসেন জানান, খুনিরা শিশুটির কান ও লিঙ্গ কেটে নিয়েছে। হত্যার পর তাকে গাছে ঝুলিয়ে দিয়েছে। কারা এ ঘটনা ঘটিয়েছে, সে বিষয়ে তাৎক্ষণিকভাবে কোনো ধারণা দিতে পারেনি পুলিশ। তবে জিজ্ঞাসাবাদের জন্য শিশুটির বাবাসহ সাতজনকে আটক করেছে পুলিশ। গতকাল সেমাবার দুপুরে তাদের আটক করে থানায় নিয়ে যাওয়া হয়। আটকরা হলেন- তুহিনের চাচা আব্দুল মছব্বির, জমশেদ মিয়া, নাসির মিয়া, জাকিরুল তুহিনের বাবা আব্দুল বাছির, চাচী ও চাচাতো বোনের নাম জানা যায়নি। সুনামগঞ্জের পুলিশ সুপার মিজানুর রহমান বলেন, জিজ্ঞাসাবাদের জন্য সাতজনকে থানায় নেওয়া হয়েছে। জিজ্ঞাসাবাদ শেষে সন্দেহজনক কিছু মনে না হলে তাদের ছেড়ে দেওয়া হবে।

কালুখালীর রতনদিয়া ইউপির ১নং ওয়ার্ডের উপ-নির্বাচনে সদস্য পদে সঞ্জয় কুমার হালদার জয়ী

ফজলুল হক ॥ রাজবাড়ীর কালুখালী উপজেলার ১নং রতনদিয়া ইউপির ১নং ওয়ার্ডের সদস্য পদে উপ-নির্বাচনে ফুটবল প্রতীক নিয়ে সঞ্জয় কুমার হালদার বেসরকারীভাবে নির্বাচিত হয়েছে। সকাল ৯টা থেকে শুরু হয়ে বিকাল ৫টা পর্যন্ত অনুষ্ঠিত এ নির্বাচনে ২২৯৭ জন ভোটারের মধ্যে ১৪৯৬টি বৈধ ভোট গৃহীত হয়। এর মধ্যে সঞ্জয় কুমার হালদার ফুটবল প্রতীক নিয়ে ৫৫৩ ভোট পেয়ে নির্বাচিত হয়েছে। তার নিকটতম প্রতিদ্বন্দ্বী মোঃ রিয়াজুল ইসলাম মোরগ প্রতীক নিয়ে ৫৪০ ভোট ও খোকন শেখ ৩৭৯ ভোট প্রাপ্ত হয়। ভোট গ্রহণ ও গণনা শেষে ফলাফল ঘোষণা করেন প্রিজাইডিং অফিসার উপজেলা পল্লী উন্নয়ন কর্মকর্তা শেখ জাহাঙ্গীর আলম। এসময় সহকারী কমিশনার ভূমি ও এক্সিকিউটিভ ম্যাজিস্ট্রেট শেখ নুরুল আলম, উপজেলা নির্বাচন অফিসার মোঃ আঃ আলীম ও প্রার্থীগণের এজেন্টবৃন্দ উপস্থিত ছিলেন।