এমসি কলেজের ছাত্রাবাসে গৃহবধূকে ধর্ষণ, ৬ ছাত্রলীগ কার্মীর নামে মামলা

ঢাকা অফিস ॥ সিলেটের মুরারী চাঁদ (এমসি) কলেজ ছাত্রাবাসে স্বামীকে আটকে রেখে এক গৃহবধূকে গণধর্ষণের অভিযোগ উঠেছে ছাত্রলীগের কয়েকজন কর্মীর বিরুদ্ধে। ওই গৃহবধূ স্বামীর সঙ্গে এমসি কলেজ ঘুরতে আসেন। পরে এসএমপির শাহপরাণ থানা পুলিশ গত শুক্রবার রাত ১০টার দিকে ছাত্রবাস থেকে স্বামীসহ ওই গৃহবধূকে উদ্ধার করে। পরে তাকে ওসমানী মেডিকেল কলেজ হাসপাতালের ওয়ানস্টপ ক্রাইসিস সেন্টারে (ওসিসি) ভর্তি করা হয়। সিলেটের প্রাচ্যের অক্সফোর্ডখ্যাত এমসি কলেজের ১২৮ বছরের পুরনো ঐতিহ্যবাহী এই ছাত্রাবাসে স্বামীকে আটকে রেখে গৃহবধূকে গণধর্ষণের খবর সাধারণ শিক্ষার্থীসহ সচেতন নাগরিকদের মধ্যে তীব্র প্রতিক্রিয়ার সৃষ্টি হয়েছে। অনেকে সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমসহ বিভিন্নভাবে মাধ্যমে এ ঘটনার তীব্র নিন্দা জানিয়েছেন। গণধর্ষণের ঘটনায় ৯ জনকে আসামি করে মামলা করা হয়েছে। গতকাল শনিবার সকালে নির্যাতনের শিকার ওই গৃহবধূর স্বামী বাদী হয়ে ছয়জনের নাম উল্লেখ করে আরও ২/৩ জনকে অজ্ঞাত আসামি করে নগরীর শাহপরাণ থানায় এ মামলা দায়ের করেন। শাহপরাণ থানা পুলিশের ওসি আবদুল কাইয়ুম চৌধুরী বিষয়টি নিশ্চিত করেছেন। মামলার আসামিরা হলেন- এমসি কলেজের ইংরেজি বিভাগের শিক্ষার্থী ছাত্রলীগ কর্মী সাইফুর রহমান, শাহ মাহবুবুর রহমান রনি, মাহফুজুর রহমান মাছুম, রবিউল হাসান, তারেক আহমদ ও অর্জুন। এজাহারভুক্ত আসামিদের সবাই আওয়ামী লীগের সাবেক যুব ও ক্রীড়া বিষয়ক সম্পাদক রঞ্জিত সরকারের অনুসারী এবং ছাত্রলীগ কর্মী বলে জানা গেছে। এ ঘটনায় জড়িত ছাত্রলীগ কর্মী সাইফুর রহমানের রুম থেকে একটি আগ্নেয়াস্ত্রসহ বেশ কিছু দেশীয় অস্ত্র উদ্ধার করেছে পুলিশ। গত শুক্রবার দিবাগত রাত ২টার দিকে নগরীর শাহপরাণ থানা পুলিশ এমসি কলেজের নতুন ছাত্রাবাসে অভিযান চালায়। এ সময় সাইফুরের রুম থেকে একটি আগ্নেয়াস্ত্র, চারটি লম্বা দা, একটি ছুরি ও দুটি জিআই পাইপ উদ্ধার করা হয়। কলেজ সূত্রে জানা গেছে, করোনা পরিস্থিতিতে কলেজ ও ছাত্রাবাস বন্ধ থাকলেও সাইফুর অবৈধভাবে ছাত্রাবাসে অবস্থান করছিলেন। তিনি সহযোগীদের নিয়ে কলেজ ক্যাম্পাস, টিলাগড় ও বালুচর এলাকায় ছিনতাই, অপহরণ ও মাদক ব্যবসা করতেন বলে অভিযোগ পাওয়া গেছে। রাতে বন্ধ ছাত্রাবাসে নিয়মিত জুয়া ও মাদকের আসর বসাতেন এমন অভিযোগও রয়েছে সাইফুরের বিরুদ্ধে। শাহপরাণ থানা পুলিশের ওসি আবদুল কাইয়ুম চৌধুরী জানান, গণধর্ষনের ঘটনার পর রাতেই এমসি কলেজ ছাত্রাবাসে অভিযান চালায় পুলিশ। এ সময় সাইফুর রহমানের রুম থেকে আগ্নেয়াস্ত্র, ধারালো অস্ত্র ও ছুরি উদ্ধার করা হয়। এ ঘটনায় মামলার প্রস্তুতি চলছিল। গতকাল শনিবার রাত আটটায় এ প্রতিবেদন তৈরি পর্যন্ত কাউকে গ্রেফতারের কথা জানা যায়নি। তবে পুলিশ খুঁজে না পেলেও ফেসবুকে সরব ছিল ঘটনায় জড়িত ছাত্রলীগ নেতাকর্মীরা। গতকাল শনিবার সকালেও ফেসবুকে স্ট্যাটাস দিয়ে নিজেদের নির্দোষ দাবি করেন মামলার দুই আসামি। গণধর্ষণের মামলার ৫ নম্বর আসামি রবিউল হাসান গতকাল শনিবার বেলা ১১টার দিকে ফেসবুক পোস্টে লিখেছেন, ‘সম্মানিত সচেতন নাগরিকবৃন্দ আমি রবিউল হাসান। আমি এমসি কলেজের শিক্ষার্থী। আপনারা অনেকে চেনেন, আমি কেমন মানুষ তা হয়তো অনেকে জানেন। শুক্রবার এমসি কলেজ ছাত্রাবাসে গণধর্ষণের সঙ্গে কে-বা কারা আমাকে জড়িয়ে সংবাদ করিয়েছেন জানি না। আমি এমসি কলেজের ছাত্র। কিন্তু আমি হোস্টেলে কখনও ছিলাম না, আমি বাসায় থেকে পড়াশোনা চালিয়ে যাচ্ছি।’ তিনি আরও লিখেছেন, ‘আপনাদের অনুরোধ করে বলছি, এই নির্মম গণধর্ষণের ঘটনার সঙ্গে আমি জড়িত নই, আমাদের পরিবার আছে। যদি আমি এই জঘন্য কাজের সঙ্গে জড়িত থাকি তাহলে প্রকাশ্যে আমাকে দৃষ্টান্তমূলক শাস্তি দেয়া হোক। আমি কোনোভাবেই এই কাজের সঙ্গে জড়িত নই। সবার কাছে অনুরোধ করছি, সত্য না জেনে আমাকে এবং আমার প্রাণের সংগঠন ছাত্রলীগের নামে অপপ্রচার করবেন না। এমসি কলেজ ছাত্রাবাসে গৃহবধূকে গণধর্ষণকারী সব নরপশুকে গ্রেফতার করে দৃষ্টান্তমূলক শাস্তির দাবি করছি।’ একইভাবে মামলার ৬ নম্বর আসামি মাহফুজুর রহমান মাসুম নিজের ফেসবুকে লিখেছেন, ‘এরকম জঘন্য কাজের সঙ্গে আমি জড়িত নই। যদি জড়িত প্রমাণ পান প্রকাশ্যে আমাকে মেরে ফেলবেন। একমাত্র আল্লাহর ওপর বিশ্বাস আছে। আল্লাহ আমাকে নির্দোষ প্রমাণ করবেন। তবে নির্দোষ প্রমাণিত হওয়ার আগে আমাকে সুইসাইডের দিকে নিয়ে যাওয়া আপনাদের বিচার আল্লাহ করবেন।’ মামলার অন্যতম আসামি মাহফুজুর রহমান মাসুমের পক্ষে সাফাই গেয়ে হুমায়ুন রশিদ পায়েল নামের একজন ফেসবুকে লিখেছেন, ‘এমসি কলেজে গণধর্ষণের ঘটনায় ছোট ভাই মাহফুজুর রহমান মাসুম এমসিতে ছিল না, সে জাফলং ছিল তার বন্ধুদের সঙ্গে। সেখানের লাইভ ভিডিও ও ছবি ফেসবুকে রয়েছে। সাংবাদিক ভাইদের প্রতি অনুরোধ, মনগড়া নিউজ করে একজন মেধাবী ছাত্রের জীবন নষ্ট করে দেবেন না।’ ফেসবুকে সরব থাকার পরও আসামিদের গ্রেফতার করতে না পারা প্রসঙ্গে শাহপরান থানা পুলিশের ওসি আবদুল কাইয়ুম চৌধুরী বলেন, আমরা তাদের গ্রেফতারে সব ধরনের চেষ্টা চালাচ্ছি। বিভিন্ন জায়গায় অভিযান চলছে। এদিকে দীর্ঘদিন এমসি কলেজে ছাত্রলীগের কমিটি না থাকায় অভিযুক্তদের কোনো পদ-পদবি নেই। কিন্তু কলেজের রাজনীতিতে তারা সক্রিয় ছিলেন। তারা মূলত সিলেট জেলা আওয়ামী লীগের সাবেক যুব ও ক্রীড়া বিষয়ক সম্পাদক রঞ্জিত সরকারের অনুসারী। গণধর্ষণে অভিযুক্তরা সিলেট জেলা ছাত্রলীগের সাবেক সদস্য নাজমুল ইসলামের সঙ্গে রাজনীতি করতেন বলেও জানা গেছে। একাধিক অনুষ্ঠানে রঞ্জিত সরকার ও ছাত্রলীগ নেতা নাজমুল ইসলামের সঙ্গে তাদের ছবি রয়েছে। প্রত্যক্ষদর্শীরা জানান, গত শুক্রবার সিলেটের এমসি কলেজে স্বামীর সঙ্গে ঘুরতে যান ধর্ষণের শিকার ওই গৃহবধূ। একপর্যায়ে রাত ৮টার দিকে তরুণীর স্বামী সিগারেট খাওয়ার জন্য এমসি কলেজের মূল গেটের বাইরে বের হন। এ সময় কয়েকজন ছাত্রলীগ কর্মী গৃহবধূকে জোরপূর্বক তুলে নিয়ে যেতে চায়। এতে তার স্বামী প্রতিবাদ করলে তাকে মারপিট শুরু করেন ছাত্রলীগের কর্মীরা। একপর্যায়ে গৃহবধূ ও তার স্বামীকে ছাত্রলীগের নেতাকর্মীরা এমসি কলেজের ছাত্রাবাসে নিয়ে যায়। সেখানে স্বামীকে বেঁধে ছাত্রলীগের তিন-চারজন নেতাকর্মী গৃহবধূকে পালাক্রমে ধর্ষণ করে। এ ব্যাপারে সিলেট মহানগর পুলিশের উপকমিশনার (দক্ষিণ) মোহা. সোহেল রেজা পিপিএম বলেন, রাত ৯টার দিকে স্বামীকে ধরে নিয়ে কিছু ছেলে মারপিট করে। গৃহবধূকে ছাত্রাবাসে ভেতরে নিয়ে তিন-চারজন মিলে গণধর্ষণ করেছে বলে অভিযোগ করেছেন তিনি। অভিযুক্তদের ধরতে পুলিশ অভিযান শুরু করেছে। সিলেট মহানগর পুলিশের অতিরিক্ত উপকমিশনার (গণমাধ্যম) জোর্তিময় সরকার বলেন, অভিযোগকারী গৃহবধূর স্বামীর বাড়ি সিলেটের দক্ষিণ সুরমা এলাকায়। গত শুক্রবার বিকেলে তিনি স্ত্রীসহ টিলাগড় এলাকায় বেড়াতে গিয়েছিলেন। এ সময় ৪-৫ জন তরুণ তাদের জিম্মি করে ছাত্রাবাসের ভেতরে নিয়ে যায়। পরে ছাত্রাবাসের ভেতরের একটি রাস্তায় তার স্ত্রীকে ধর্ষণ করে। সিলেট শাহপরান থানার ওসি কাইয়ুম চৌধুরী জানান, এক দম্পতিকে এমসি কলেজ ছাত্রাবাসে আটকে রাখা হয়েছে খবর পেয়ে পুলিশ ছাত্রাবাস থেকে তাদের উদ্ধার করে। উদ্ধার হওয়া নারী ধর্ষণের অভিযোগ করেছেন। পরে তাকে ওসমানী হাসপাতালের ওসিসিতে ভর্তি করা হয়েছে। এমসি কলেজের ছাত্রাবাসের সুপার মো. জামাল উদ্দিন জানান, কয়েকজন ছাত্রাবাসে এক দম্পতিকে আটক রাখে বলে অভিযোগ পেয়েছি। পরে পুলিশ তাদের উদ্ধার করে। কলেজ কর্তৃপক্ষের ৩ সদস্যের তদন্ত কমিটি: গণধর্ষণের ঘটনায় ৩ সদস্যের কমিটি গঠন করেছে কলেজ কর্তৃপক্ষ। গতকাল শনিবার গণিত বিভাগের বিভাগীয় প্রধান আনোয়ার হোসেন চৌধুরীর নেতৃত্বে গঠিত কমিটিতে দুইজন হোস্টেল সুপারকে যুক্ত করা হয়। এই কমিটি আগামী এক সপ্তাহের মধ্যে ঘটনাটি তদন্ত করে প্রতিবেদন দেওয়ার জন্য বলা হয়েছে। এমসি কলেজের অধ্যক্ষ প্রফেসর সালেহ আহমদ এ তথ্য নিশ্চিত করে বলেন, কমিটির সদস্যরা ছাত্রদের ছাত্রাবাসে অবস্থানের বিষয়টি খতিয়ে দেখবেন। গণধর্ষণের ঘটনায় জড়িত একজন ব্যতীত বাকিরা বহিরাগত। বর্তমান ছাত্রের বিষয়ে আমরা জাতীয় বিশ্ববিদ্যালয়কে সুপারিশ করবো তার ছাত্রত্ব বাতিলের। এ ছাড়া অভিযুক্তদের ব্যাপারে আইনশৃঙ্খলা বাহিনী ব্যবস্থা নেবে। এ ক্ষেত্রে কলেজ কর্তৃপক্ষ যতটুকু সহযোগিতা করার করবে। সড়ক অবরোধ করে বিক্ষোভ: এদিকে গণধর্ষণের প্রতিবাদে আন্দোলনে নামেন সাবেক ও বর্তমান শিক্ষার্থীরা। সেই সঙ্গে আন্দোলনে যোগ দেন ছাত্রলীগ নেতাকর্মীরাও। গতকাল শনিবার দুপুর সাড়ে ১২টার দিকে এমসি ও সরকারি কলেজের প্রায় শতাধিক শিক্ষার্থী কলেজের সামনে সিলেট-তামাবিল সড়ক অবরোধ করে বিক্ষোভ করেন। শিক্ষার্থীরা অভিযোগ করেন, করোনা পরিস্থিতিতে কলেজ বন্ধ থাকার পরেও কর্তৃপক্ষ কীভাবে ছাত্রাবাস খোলা রাখেন। কর্তৃপক্ষের অবগত থাকার পরেও কেন ছাত্রাবাস বন্ধ করে দেওয়া হল না। যে কারণে ঐতিহ্যবাহী বিদ্যাপিঠে কলঙ্কের দাগ লেগেছে বলে মনে করেন তারা। এসময় শিক্ষার্থীরা গণধর্ষণের ঘটনার সঙ্গে জড়িতদের দ্রুত গ্রেফতার ও ফাঁসি দাবি করেন। অন্যথায় তারা আরও কঠোর কর্মসূচি ঘোষণা করবেন বলে হুঁশিয়ারি দেন। আন্দোলন চলাকালে টায়ার জ¦ালিয়ে বিক্ষোভ করতে দেখা যায় শিক্ষার্থীদের। অপ্রীতিকর ঘটনা এড়াতে কলেজ ও ছাত্রাবাসে বিপুল সংখ্যক পুলিশ মোতায়েন করা হয়।

মেহেরপুরে বজ্রপাতে ২ জন নিহত

মেহেরপুর প্রতিনিধি ॥ মেহেরপুর সদর উপজেলার  কুতুবপুর ইউনিয়নের তেরঘরিয়া গ্রামের মাঠে মহিষ চরাতে গিয়ে মনিরুল ইসলাম (৫৭) নামের একজন নিহত হয়েছেন। নিহত মনিরুল তেরঘরিয়া গ্রামের বাসিন্দা। গতকাল শনিবার সন্ধ্যায় নিহতের ঘটনা ঘটে। স্থানীয়রা জানান শনিবার বিকেলে মনিরুল মাঠে মহিষ চরাতে যান। মহিষ চরাতে গিয়ে তার সন্ধ্যা গড়িয়ে যায়। এ সময় আকাশ থেকে বৃষ্টি হচ্ছিল। এক পর্যায়ে একটি আকস্মিক বজ্রপাত তার শরীরে আঘাত করলে ঘটনাস্থলেই মারা যান। তবে বজ্রপাতে তার মহিষের কোন ক্ষতি হয়নি। এছাড়াও বিকেলে একই গ্রামের এক মহিলা বজ্রপাতে আহত হয়েছেন বলে জানা গেছে। স্থানীয়রা তাকে উদ্ধার করে মেহেরপুর জেনারেল হাসপাতালে ভর্তি করেন। অন্যদিকে শনিবার সন্ধ্যায় গাংনী উপজেলার তেঁতুলবাড়ীয়া গ্রামে বিলে মাছ ধরতে গিয়ে লিটন হোসেন (২৫) নামের এক যুবক নিহত হয়েছেন। নিহত লিটন ওই গ্রামের সিলনপাড়ার গোলাম  হোসেনের ছেলে। শনিবার সন্ধ্যায় লিটন গ্রামের একটি বিলে জাল দিয়ে মাছ ধরছিলেন। এ সময় বৃষ্টির সাথে আকস্মিক বজ্রপাত তার শরীরে লাগলে ঘটনাস্থলেই নিহত হন।

 

যুব সমাজকে কাজে লাগিয়ে দেশ এগিয়ে যাবে – স্পিকার

ঢাকা অফিস ॥ স্পিকার ড. শিরীন শারমিন চৌধুরী এমপি বলেছেন, সুযোগ ও সক্ষমতার সমন্বয়ে যুব সমাজকে কাজে লাগিয়ে দেশ ও জাঁতি এগিয়ে যাবে। অনুদান ও ঋণের মাধ্যমে সুযোগ তৈরি এবং বিভিন্ন প্রশিক্ষণের মাধ্যমে সক্ষমতা বৃদ্ধির মধ্য দিয়ে এই দুইয়ের সমন্বয় করা হচ্ছে। যুব উন্নয়নে কর্মসংস্থান ব্যাংকের ‘বঙ্গবন্ধু যুব ঋণ’ কার্যকর ভূমিকা রাখছে বলেও উল্লেখ করেন স্পিকার। গতকাল শনিবার রংপুরের পীরগঞ্জ উপজেলা অডিটরিয়ামে আয়োজিত জাতির পিতা বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের জন্মশতবার্ষিকী উপলক্ষে রংপুরের পীরগঞ্জস্থ কর্মসংস্থান ব্যাংকের উদ্যোগে প্রশিক্ষিত যুবকদের মাঝে ‘বঙ্গবন্ধু যুব ঋণ’-এর চেক বিতরণ অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথি হিসেবে ভার্চুয়ালি সংযুক্ত হয়ে এসব কথা বলেন। এ সময় স্পিকার কর্মসংস্থান ব্যাংকের উদ্যোগে ১০০ জন যুব’র মাঝে ‘বঙ্গবন্ধু যুব ঋণ’-এর চেক, তার ব্যক্তিগত তহবিল হতে প্রতিবন্ধীদের মাঝে ৩০টি হুইল চেয়ার ও ২টি ট্রাইসাইকেল, ১০টি শিক্ষা প্রতিষ্ঠানের প্রধান শিক্ষকদের মাঝে ক্রীড়া সামগ্রী ক্রয়ের জন্য ৫০ হাজার টাকা করে মোট পাঁচ লাখ টাকার চেক এবং ধর্ম বিষয়ক মন্ত্রণালয়ের পক্ষ হতে পীরগঞ্জ উপজেলার ৩০ জন অসহায়, দুস্থ ও কর্মহীন মানুষের মাঝে ১৫ হাজার টাকা করে মোট চার লাখ ৫০ হাজার টাকার চেক বিতরণ করেন। স্পিকার বলেন, প্রতিটি ক্ষেত্রে তৃণমূল পর্যায় পর্যন্ত বিভিন্ন ধরনের প্রশিক্ষণ, তথ্য-প্রযুক্তিনির্ভর শিক্ষা, জামানতবিহীন ঋণ ও প্রণোদনার মাধ্যমে নারীদের সামনে এগিয়ে আনাসহ দক্ষ মানবসম্পদ তৈরিতে সরকার নিরলসভাবে কাজ করে যাচ্ছে। ১৯৯৮ সালে প্রতিষ্ঠার পর থেকে কর্মসংস্থান ব্যাংক প্রশিক্ষণসহ নানা কার্যক্রমের মাধ্যমে দক্ষ মানবসম্পদ ও উদ্যোক্তা তৈরিতে কাজ করছে। শিরীন শারমিন চৌধুরী বলেন, মাননীয় প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা দেশের মানুষের পারিবারিক, সামাজিক, অর্থনৈতিক তথা সার্বিক উন্নয়নে সুখী সমৃদ্ধ ডিজিটাল বাংলাদেশ বিনির্মাণের জন্য অক্লান্ত পরিশ্রম করে যাচ্ছেন। সকলের সমন্বিত প্রচেষ্টায় তরুণদের সক্ষমতা বৃদ্ধির মাধ্যমে সুযোগ করে দিয়ে প্রধানমন্ত্রী যে লক্ষ্য নিয়ে এগিয়ে যাচ্ছেন তা বাস্তবায়ন করতে হবে। রংপুর জেলার জেলা প্রশাসক মো. আসিব আহসানের সভাপতিত্বে অনুষ্ঠানে আর্থিক প্রতিষ্ঠান বিভাগের সিনিয়র সচিব মো. আসাদুল ইসলাম, কর্মসংস্থান ব্যাংক পরিচালনা বোর্ডের চেয়ারম্যান কানিজ ফাতেম ও কর্মসংস্থান ব্যাংকের ব্যবস্থাপনা পরিচালক মো. তাজুল ইসলাম বিশেষ অতিথি হিসেবে বক্তব্য রাখেন। অনুষ্ঠানে পীরগঞ্জ উপজেলা পরিষদের চেয়ারম্যান নূর মোহাম্মদ মন্ডল, পীরগঞ্জ উপজেলা আওয়ামী লীগের সভাপতি আজিজুর রহমান রাঙ্গা ও পীরগঞ্জ পৌরসভার মেয়র এ এস এম তাজিমুল ইসলাম শামীম অতিথি হিসেবে বক্তব্য রাখেন। অনুষ্ঠানে বিভিন্ন গণ্যমান্য ব্যক্তিবর্গ ও গণমাধ্যমকর্মীরা উপস্থিত ছিলেন।

 

বিএনপি রাজপথেই রয়েছে – রিজভী

ঢাকা অফিস ॥ সরকার পতনের জন্য বিএনপি প্রশস্ত রাজপথের আন্দোলনে রয়েছে বলে দাবি করেছেন দলটির সিনিয়র যুগ্ম-মহাসচিব অ্যাডভোকেট রুহুল কবির রিজভী আহমেদ। গতকাল শনিবার দুপুরে নয়াপল্টনে দলের কেন্দ্রীয় কার্যালয়ে সংবাদ সম্মেলনে তিনি এ দাবি করেন। রিজভী বলেন, ‘আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক ওবায়দুল কাদের বলেছেন- ‘বিএনপি ক্ষমতায় যাওয়ার অলি-গলি খুঁজছে’। বিএনপি অলি-গলি খুঁজবে কেন? বিএনপি তো অবৈধ সরকারের পতনের জন্য প্রশস্ত রাজপথেই আন্দোলন করছে। ষড়যন্ত্র ও চক্রান্তের মাধ্যমে রাজোচিত জীবন নির্বাহ যাতে ব্যাহত না হয় সেজন্যই ওবায়দুল কাদের সাহেবরা কানা গলি দিয়ে কখনও বিনা ভোটে কখনও নিশিরাতের ভোটে ক্ষমতায় আছেন। তিনি বলেন, অলি-গলি ওবায়দুল কাদের সাহেবদেরকেই অবলম্বন করতে হয়। কারণ তারা ভোটের অধিকার কেড়ে নিয়ে জনগণকে দুঃসহ জীবন-যাপনে বাধ্য করে অবৈধভাবে ক্ষমতা ধরে রেখেছে। ওবায়দুল কাদের সাহেবদেরকে চক্রান্তের জন্য অলি-গলি পথ অবলম্বন করতে হয় এজন্য যে, সরকারের পৃষ্ঠপোষকতায় এখন দুর্নীতির জয়জয়কার, রাজরোষে বিরোধী মত ও ব্যক্তিরা কারাগারে, নারকীয় উল্লাসে চলছে গুম-খুন-ক্রসফায়ার, ক্ষমতাসীনদের আশকারায় পৈশাচিক আনন্দে নারী-শিশু নির্যাতনের হিড়িক চলছে, বিচার বিভাগকে করা হয়েছে সরকারের হাতের খেলনা, প্রশাসন ও আইনশৃঙ্খলা বাহিনীকে শুধুমাত্র সরকার ও সরকারপ্রধানের নিজস্ব বরকন্দজে পরিণত করা হয়েছে। আওয়ামী লীগ এখন জনগণের আতঙ্কের নাম। রিজভী বলেন, শান্তিবিনাশী সমাজবিরোধীদের দাপট বৃদ্ধি পেয়েছে, কারণ এরা সরকারি দলের লোক। এই দুঃশাসনে জনগণের মধ্যে ক্রোধবহ্নি দাউদাউ করে জ¦লছে। এটা ইতিহাসে প্রমাণিত-অবৈধ শাসনের অবসান ঘটাতে জনগণের প্রতিজ্ঞা কখনওই নিষ্ফল হয়নি। অবৈধভাবে ক্ষমতায় থাকা ওবায়দুল কাদের সাহেবরা মাঝে মাঝে দুঃস্বপ্ন দেখে লাফ দিয়ে উঠে আবোল-তাবোল বকতে থাকেন। কারণ আওয়ামী লীগের ঐতিহ্যই হচ্ছে গণতন্ত্র ও জনগণের সঙ্গে প্রতারণা করা। ওবায়দুল কাদের সাহেবের হুংকারসর্বস্ব বক্তব্য যেন অন্ধকার রাতে ভূতের ভয়ে আত্মচিৎকার করা। বিএনপির এ নেতা বলেন, তথ্যমন্ত্রী হাসান মাহমুদ বলেছেন- ‘পাকিস্তানি গোয়েন্দাদের সঙ্গে বিএনপির দহরম-মহরম বহু পুরনো’। হঠাৎ করে তথ্যমন্ত্রীর এ ধরনের উদ্ভট বক্তব্য জনগণের মনে ঘোরতর সন্দেহের সৃষ্টি করেছে। মনে হয়, তার মন্ত্রিত্ব এখন টালমাটাল অবস্থায় আছে। আওয়ামী মন্ত্রীদের বিচারবুদ্ধি নিয়ে জনগণের মাঝে নানা কথা প্রচলিত আছে। তারা যখন খুব বিচলিত ও বেকায়দায় পড়ে তখনই তারা ষড়যন্ত্র তত্ত্ব আবিষ্কার করে। তিনি বলেন, বর্তমান রাজনৈতিক পরিস্থিতিতে আওয়ামী মন্ত্রীদের কপালে দুশ্চিন্তার ভাঁজ পড়েছে। বেশ কিছুদিন ধরে দেশি-বিদেশি গণমাধ্যমে আওয়ামী লীগের মুরুব্বি পরিবর্তন নিয়ে নানা আলোচনা চলছে। সুতরাং সব কূল হারিয়ে সরকার মনে হয় স্বস্তিতে নেই। বর্তমান পরিস্থিতি নিয়ে নানা জল্পনা-কল্পনা এড়াতেই তথ্যমন্ত্রী বিদেশে ষড়যন্ত্র তত্ত্ব আবিষ্কার করেছেন। আওয়ামী তথ্যমন্ত্রী হাওয়া থেকে পাওয়া তথ্য দিতেই পারঙ্গম। রিজভী বলেন, আওয়ামী লীগের জন্ম ও বিকাশ দেশি-বিদেশি গোয়েন্দাদের ল্যাবরেটরিতে। হাসান মাহমুদ সাহেব আপনি ভারতের প্রয়াত রাষ্ট্রপতি প্রণব মুখার্জীর রচিত বইটি পড়ে দেখুন, কীভাবে তিনি জেনারেল মঈনউদ্দিকে ম্যানেজ করেছিলেন শেখ হাসিনার পক্ষে। ভিন্ন দেশের রাজনৈতিক নেতা কীভাবে বাংলাদেশের একটি রাজনৈতিক দলকে ক্ষমতায় বসাতে সহযোগিতা করতে পারে? আপনার নিশ্চয়ই মনে আছে, আপনার প্রধানমন্ত্রীর বক্তব্য। তিনি বলেছিলেন- আমি ভারতকে যা দিয়েছি তা সারাজীবন মনে রাখবে। কিন্তু তিনি দেশের জন্য কী কী জিনিস দিয়েছেন তা কিন্তু বলেননি। সুতরাং বিদেশিদের সঙ্গে দহরম-মহরম করে গদি টিকিয়ে রাখার নম্বর ওয়ান ব্যক্তি হচ্ছেন শেখ হাসিনা। পাবনা-৪ আসনের উপনির্বাচনের প্রসঙ্গ টেনে রিজভী বলেন, আজ (গতকাল শনিবার) পাবনা-৪ আসনের উপনির্বাচন চলছে। নির্বাচনকে ঘিরে কয়েকদিন থেকেই চলছে ধানের শীষের প্রার্থীর সমর্থক ও নেতাকর্মীদের ওপর আওয়ামী সন্ত্রাসীদের জুলুম নির্যাতন। পাশাপাশি চলছে পুলিশি ধরপাকড়। নির্বাচন চলাকালে বিএনপির কোনো এজেন্টকে ভোটকেন্দ্রে ঢুকতে দেয়া হচ্ছে না। ভোটারদের কেন্দ্রে ঢুকতে দিচ্ছে না সন্ত্রাসীরা। রিজভী বলেন, আওয়ামী সন্ত্রাসীরা ভোটকেন্দ্রের বাইরে ভীতিকর পরিস্থিতি সৃষ্টি করে ভোটারদেরকেও ভোটকেন্দ্রে ঢুকতে দিচ্ছে না। শুধুমাত্র আওয়ামী সন্ত্রাসীরা কেন্দ্রে ঢুকে ভোট দিচ্ছে। এর দু’দিন আগে থেকেই বিএনপি নেতাকর্মীদের গ্রেফতার শুরু হয়েছে। আটঘরিয়া থানায় ৩টি এবং ঈশ্বরদী থানায় ৩টি গায়েবি মিথ্যা মামলা দায়ের করে পুলিশি অভিযানের নামে বিএনপি নেতাকর্মীদের এলাকাছাড়া করা হয়েছে। তিনি বলেন, মিথ্যা মামলায় গ্রেফতার করা হয়েছে ঈশ্বরদী থানা বিএনপির যুগ্ম আহ্বায়ক কল্লোল, পাকশী ইউনিয়নের চেয়ারম্যানের ভাই বিএনপি নেতা বিপ্লব, সলিমপুর ইউনিয়ন বিএনপির যুগ্ম আহ্বায়ক অহিদুল এবং সেনাবাহিনীর সাবেক সদস্য ও বিএনপি নেতা আবদুল হাইসহ ১৫/২০ জন নেতাকর্মীকে। বিএনপির এ নেতা বলেন, চাঁদপুর সদর পৌরসভার আসন্ন মেয়র নির্বাচনে গতকাল (গত শুক্রবার) নির্বাচনী প্রতীক আনার জন্য ধানের শীষের প্রার্থী ও তার সমর্থকরা রিটার্নিং অফিসারের কার্যালয়ে গেলে আওয়ামী সন্ত্রাসীরা তাদের ওপর আকস্মিক হামলা চালায়। এই হামলায় বিএনপির ৪০/৫০ জন নেতাকর্মী গুরুতর আহত হয়। রিটার্নিং কর্মকর্তা ইভিএমের ডেমনেস্ট্রশনের সময় দেখা যায়, গ-তে বাটন চাপ দিলে ঘ-তে চলে যায়। এই জলজ্যান্ত জালিয়াতি ইতোমধ্যে ইউটিউবে ছড়িয়ে পড়েছে। তিনি বলেন, আমরা এজন্যই বলে থাকি, বর্তমান প্রধান নির্বাচন কমিশনার কে এম নুরুল হুদা একজন বিবেকশূন্য মানুষ। শেখ হাসিনার নির্দেশ মতো তিনি দেশ থেকে সুষ্ঠু নির্বাচনের ইতিহাসকে মুছে দিতে চাচ্ছেন এবং সেই নমুনাই এখন জোরালোভাবে ফুটে উঠতে শুরু করেছে। রিজভী বলেন, নির্বাচনকে কেন্দ্র করে আইনশৃঙ্খলা বাহিনী এবং আওয়ামী সন্ত্রাসীদের এই ধরনের ন্যক্কারজনক আচরণের আমি তীব্র নিন্দা ও প্রতিবাদ জানাচ্ছি। গ্রেফতারকৃত নেতাকর্মীদের নিঃশর্ত মুক্তি এবং হামলায় আহত নেতাকর্মীদের আশু সুস্থতা কামনা করছি।

টোগোর প্রধানমন্ত্রী ও সরকারের পদত্যাগ

ঢাকা অফিস ॥ টোগোর প্রধানমন্ত্রী ও তার সরকার পদত্যাগ করেছে। শুক্রবার রাতে পশ্চিম আফ্রিকার এ দেশের প্রেসিডেন্টের দপ্তর একথা জানায়। খবর এএফপি’র। প্রেসিডেন্টের দপ্তরের ওয়েবসাইটে দেয়া এক বিবৃতিতে বলা হয়, প্রেসিডেন্ট ফাউরি গনাসিংবে প্রধানমন্ত্রী কোমি সালোম ক্লাসোউ এবং তার দলকে তাদের ‘অর্থনৈতিক, রাজনৈতিক ও সামাজিক প্রচেষ্টার এবং বিশ্বব্যাপী স্বাস্থ্য সংকট সত্ত্বেও উৎসাহব্যঞ্জক ফলাফলের জন্য অভিনন্দন জানিয়েছেন।’ গনাসিংবে চতুর্থ মেয়াদের জন্য গত ফেব্রুয়ারিতে পুনঃনির্বাচিত হওয়ার পর টোগোতে রাজনৈতিক পালাবদলের কথা থাকলেও মহামারি করোনাভাইরাসের কারণে তা বিলম্বিত হয়। নির্বাচনে এ প্রেসিডেন্টের বিজয়ের ফলে সাবেক এ ফরাসি কলোনি রাষ্ট্রে গনাসিংবে পরিবারের রাজবংশীয় শাসনের মেয়াদ ৫০ বছর ছাড়ালো। নির্বাচনের পর দেশটির প্রধান বিরোধী দলীয় প্রার্থী অভিযোগ উত্থাপন করে বলেন, এ নির্বাচন নিরপেক্ষ হয়নি। নির্বাচনে তিনি সরকারি হয়রানির মুখে পড়েন। তাই এ বিজয় বিতর্কিত। প্রেসিডেন্টের পিতা গনাসিংবে ইয়াদামা মারা যাওয়ায় ২০০৫ সালে দায়িত্ব নেয়ার পর থেকে তিনি ৮০ লাখ জনসংখ্যার এ দেশের নেতৃত্ব দিয়ে আসছেন। ইয়াদামা ৩৮ বছর দেশ শাসন করেন। ক্লাসোউ ২০১৫ সাল থেকে টোগোর প্রধানমন্ত্রীর দায়িত্ব পালন করেন। উল্লেখ্য, টোগোতে করোনাভাইরাসে এ পর্যন্ত ১ হাজার ৭২২ জন আক্রান্ত এবং ৪৪ জনের মৃত্যু হয়েছে।

চরসাদিপুর বিএনপির নেতৃবৃন্দের সাথে মেহেদী রুমী মতবিনিময় সভা

কুষ্টিয়ার কুমারখালীর চরসাদিপুর ইউনিয়ন বিএনপির নেতৃবৃন্দের সাথে সৈয়দ মেহেদী আহমেদ রুমী মতবিনিময় সভা অনুষ্ঠিত হয়। গতকাল সকালে জেলা বিএনপির কার্যালয়ে চরসাদিপুর ইউনিয়ন বিএনপির সভাপতি আব্দুল মজিদের সভাপতিত্বে প্রধান অতিথির বক্তব্য রাখেন, বিএনপির চেয়ারপার্সন বেগম খালেদা জিয়ার উপদেষ্টা কাউন্সিলের অন্যতম সদস্য ও কুষ্টিয়া জেলা বিএনপির সভাপতি সাবেক এমপি বীরমুক্তিযোদ্ধা সৈয়দ মেহেদী আহমেদ রুমী। সভায় আরো বক্তব্য রাখেন- জেলা বিএনপির যুগ্ন-সম্পাদক আব্দুর রাজ্জাক বাচ্চু, সাংগঠনিক সম্পাদক খন্দকার সামছু জাহিদ, যুব বিষয়ক সম্পাদক মেজবাউর রহমান পিন্টু, চরসাদিপুর ইউনিয়ন বিএনপির উপদেষ্টা ফয়েজ উদ্দিন বিশ্বাস, সহ-সভাপতি আ: মালেক, সহ-সভাপতি জিয়ারুল ইসলাম, সাধারণ সম্পাদক  মো:  গোলাম আজম, যুগ্ন সম্পাদক আক্কাস আলী, বিএনপি নেতা মো: ফারুক হোসেন, যুবদল সভাপতি মো: নজরুল ইসলাম, যুবদল সাংগঠনিক সম্পাদক মানিক হোসেন, ছাত্রদল সভাপতি জাহাঙ্গীর আলমসহ সংগঠনের অন্যান্য নেতাকর্মীরা এ সময় উপস্থিত ছিলেন। প্রধান অতিথির বক্তব্য সৈয়দ মেহেদী আহমেদ রুমী বলেন, দেশনেত্রী বেগম খালেদা জিয়ার মুক্তি ও দেশে ভোটের অধিকার ফিরিয়ে আনতে হবে। এ জন্য আমাদেরকে সকল ভেদাভেদ ভুলে ঐক্যবদ্ধ হতে হবে। আমরা ঐক্যবদ্ধভাবে দেশের জনগণকে সঙ্গে নিয়ে আন্দোলন সংগ্রাম করলে এই ভোটার বিহিন সরকার এক ঘন্টার জন্য ক্ষমতায় থাকতে পারবে না। এই সরকার আমাদের দেশনেত্রী বেগম খালেদা জিয়া, বিএনপির ভারপ্রাপ্ত চেয়ারম্যান তারেক রহমানসহ সকল নেতা কর্মীদের বিরুদ্ধে প্রায় লক্ষাধিক মামলা করেছে বিএনপিকে ধ্বংস করার জন্য কিন্তু বিএনপি আগে যে কোন সময়ের চাইতে এখন আরো শক্তিশালী। তাই আমাদরকে আগামী দিনে বিএনপির ভারপ্রাপ্ত চেয়ারম্যান তারেক রহমান যে কর্মসূচী দেবে তা বাস্তবায়নের জন্য প্রস্তুত থাকতে হবে। আমি আপনাদের আপদে বিপদে অতিতে ছিলাম, বর্তমানে আছি এবং ভবিষ্যতে থাকবো ইনশাল্লাহ। সংবাদ বিজ্ঞপ্তি

 

সৌদি যেতে টিকিটের কোন সমস্যা হবে না ঃ পররাষ্ট্র প্রতিমন্ত্রী

ঢাকা অফিস ॥ পররাষ্ট্র প্রতিমন্ত্রী শাহরিয়ার আলম জানিয়েছেন, সৌদি আরবে যেতে টিকিটের কোন সমস্যা হবে না। সবাই যেতে পারবেন, সফর মাস শেষ হবার আগেই। গতকাল শনিবার নিজের ফেসবুকে এ তথ্য জানিয়েছেন প্রতিমন্ত্রী। শাহরিয়ার আলম বলেন, নিজের টিকিটটা আগে সংগ্রহের উদ্দেশ্যে সবাই একসাথে টিকিট কাটার চেষ্টা করছেন বলে ভিড় হচ্ছে বা মনে হচ্ছে টিকিটের সংকট হচ্ছে, যা সত্য নয়। প্রয়োজনে ফ্লাইট সংখ্যাও বাড়ানো হবে। অযথা হৈ-হুল্লোড় বা তাড়াহুড়োর কোন প্রয়োজন নেই। দাম্মামেও ফ্লাইট পরিচালনার জন্য আমরা বলেছি এবং তা করা হবে। তারিখ পরে জানিয়ে দেওয়া হবে। কেউ বাদ যাবেন না। ঢাকার সৌদি দূতাবাসের নির্দেশনা অনুযায়ী ভিসার মেয়াদ বৃদ্ধির জন্য নিয়ম মেনে আবেদনের অনুরোধ জানান প্রতিমন্ত্রী শাহরিয়ার আলম।

ভেঙে গেলো গণফোরাম

ঢাকা অফিস ॥ প্রতিষ্ঠার ২৭ বছর পর ভেঙে দুই ভাগ হয়ে গেলো ড. কামাল হোসেনের নেতৃত্বাধীন গণফোরাম। বেরিয়ে যাওয়া অংশের নেতৃত্ব দিচ্ছেন দলটির সাবেক সাধারণ সম্পাদক মোস্তফা মহসিন মন্টুসহ তিন জন নেতা। আর এই অংশটি আগামী ২৬ ডিসেম্বর দলের কেন্দ্রীয় কাউন্সিলেরও ঘোষণা করেছে। গতকাল শনিবার দুপুরে জাতীয় প্রেস ক্লাবে মন্টুর নেতৃত্বাধীন গণফোরামের বর্ধিত সভা থেকে কাউন্সিলের ঘোষণা দেওয়া হয়। প্রসঙ্গত, এর আগে গত ২২ সেপ্টেম্বর এক সংবাদ বিজ্ঞপ্তিতে গণফোরামের বর্তমান আহ্বায়ক কমিটির সভাপতি ড. কামাল হোসেন ও সাধারণ সম্পাদক রেজা কিবরিয়া বলেন, ২৬ সেপ্টেম্বরে বর্ধিত সভার সঙ্গে গণফোরামের কোনও সংশ্লিষ্টতা নেই। সেই অনুযায়ী বর্ধিত সভায় তারা কেউ উপস্থিত ছিলেন না। শনিবারের বর্ধিত সভায় গণফোরামের সাবেক নির্বাহী সভাপতি আবু সাইয়িদ বলেন, বর্ধিত সভায় আমরা সিদ্ধান্ত নিয়েছি সংগঠনকে সাংগঠনিকভাবে শক্তিশালী ও গণমুখী করার লক্ষ্যে আগামী ২৬ ডিসেম্বর জাতীয় কাউন্সিল অনুষ্ঠিত হবে। জাতীয় কাউন্সিলকে সফল করার লক্ষ্যে সাবেক সাধারণ সম্পাদক মোস্তফা মহসিন মন্টুকে আহ্বায়ক করে ২০১ সদস্যের কমিটি গঠন করা হয়েছে। সভার মধ্যে দিয়ে গণফোরামের নামের আরেকটি দল গঠন করতে যাচ্ছেন কিনা- এমন প্রশ্নের জবাবে মোস্তফা মহসিন মন্টু বলেন, ২৬ ডিসেম্বরের কাউন্সিলে উপস্থিত ডেলিগেটদের মতামত নিয়ে পরবর্তী সিদ্ধান্ত হবে নতুন দলের বিষয়ে। ড. কামাল হোসেনের বিষয়ে তাদের কী সিদ্ধান্ত- জানতে চাইলে মন্টু বলেন, আমরা এখনও বিশ্বাস করি, ড. কামাল হোসেন আমাদের সঙ্গে আসবেন। বিতর্কিত লোকদের পরিহার করবেন। মাঠের পোড় খাওয়া লোকদের নিয়ে এগিয়ে যাবেন। আর তিনি না আসলে তার বহিষ্কারের বিষয়ে আমাদের সম্মেলনে সিদ্ধান্ত নেবো। সম্মেলনে কাউন্সিলর ও ডেলিগেটরা আসবে। তাদের মতামত সাপেক্ষে তার বিষয়ে আমরা সিদ্ধান্ত নেবো। গণফোরাম তো বিএনপির নেতৃত্বধীন ঐক্যফ্রন্টে আছে, আপনারা কি তাহলে ঐক্যফ্রন্ট থেকে বেরিয়ে যাচ্ছেন- জানতে চাইলে মন্টু বলেন, ঐক্যফ্রন্টের বিষয়ে আমরা এখনও কোনও সিদ্ধান্ত নেবো না। সামনে আমাদের সম্মেলন প্রস্তুতি কমিটির মিটিং আছে। সেখানে সিদ্ধান্ত নেবো। ঐক্যফ্রন্টের সঙ্গে জোট করে একাদশ সংসদ নির্বাচন অংশগ্রহণ এবং জোটে মানবতাবিরোধী অপরাধে অভিযুক্ত দল জামায়াতের প্রসঙ্গে এক প্রশ্নের জবাবে মন্টু বলেন, ঐক্যফ্রন্টে জামায়াত ছিল না। আর আমি একাদশ সংসদ নির্বাচনে অংশগ্রহণ করবো বলেছিলাম কামাল হোসেনকে। কিন্তু তিনি যেহেতু দলের সভাপতি ছিলেন, সাধারণ সম্পাদক হিসেবে তার নির্দেশে আমি নির্বাচনে অংশ নিয়েছি। কারণ আমি তার আদেশ অমান্য করতে পারি না সাধারণ সম্পাদক হিসেবে। আর সেই নির্বাচন কীভাবে আগের রাতে হয়ে গেছে আমরা সবাই জানেন। অর্থবহ পরিবর্তনের লক্ষ্যে গণফোরাম জাতীয় ঐক্য চায় বলেও মন্তব্য করেন মন্টু। বর্ধিত সভায় গণফোরামের কত জেলার প্রতিনিধি আছেন- জানতে চাইলে দলটির সাবেক নির্বাহী সভাপতি অ্যাডভোকেট সুব্রত চৌধুরী বলেন, আমাদের সঙ্গে গণফোরামের ৫২ জেলার ২৮৩ জন প্রতিনিধি উপস্থিত আছেন। বর্ধিত সভায় আরও উপস্থিত গণফোরামের সাবেক প্রেসিডিয়াম সদস্য জগলুল হায়দার আফ্রিক, সাংগঠনিক সম্পাদক লতিফুল বারী হামিম প্রমুখ।

 

শেখ হাসিনার দুরদর্শীতায় বাংলাদেশ আজ রপ্তানিকারক দেশ – জব্বার

ঢাকা অফিস ॥ ডাক ও টেলিযোগাযোগ মন্ত্রী মোস্তাফা জব্বার বলেছেন, প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা ডিজিটাল বাংলাদেশ প্রতিষ্ঠার দূরদর্শী পরিকল্পনা নেওয়ার পাশাপাশি তা বাস্তবায়নের ফলে বাংলাদেশ আজ রপ্তানিকারক দেশে রূপান্তরিত হয়েছে। তিনি বলেন, আমরা ইতোমধ্যেই অতীতের শতশত বছরের পশ্চাদপদতা অতিক্রম করে চতুর্থ শিল্প বিপ্লবে শিল্পোন্নত বিশ্বের সমান্তরালে চলার সক্ষমতা অর্জন করেছি। বিশ্বের ৮০টি দেশে বাংলাদেশ সফটওয়্যার রপ্তানি করছে। নাইজেরিয়া ও নেপালে কম্পিউটার, যুক্তরাষ্ট্রে মোবাইল রপ্তানি করছি। সৌদি আরবে আইওটি ডিভাইস রপ্তানি হচ্ছে। বাংলাদেশে উৎপাদিত মোবাইল থেকে দেশের শতকরা ৮২ ভাগ মোবাইলের চাহিদা পূরণ হচ্ছে। ৫জি মোবাইল উৎপাদনের প্রক্রিয়া শুরু হয়েছে। গতকাল শনিবার ঢাকায় অনলাইনে মার্চেন্ট বে লিমিটেডে এর উদ্বোধন অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথির বক্তব্যে তিনি এসব কথা বলেন। মন্ত্রী বলেন, আমাদের নতুন প্রজন্মের ছেলে-মেয়েরা পৃথিবীকে জয় করার মেধা রাখে। দেশের শতকরা ৬৫ ভাগ তরুণ জনগোষ্ঠী বড় সম্পদ। অপরদিকে জার্মান ও জাপানসহ পৃথিবীর অনেক উন্নত দেশের পপুলেশন ডিভিডেন্ট এর দিকে থেকে বিপরীত চিত্র বিদ্যমান। কৃত্রিম বুদ্ধিমত্তা, রোবটিকস, ব্লকচেইন, বিগডাটা ইত্যাদি ডিজিটাল প্রযুক্তির সঙ্গে মানুষের দক্ষতার সমন্বয় ঘটিয়েই আমাদের শিল্প বিপ্লবের চ্যালেঞ্জ মোকাবিলার জন্য প্রস্তুতি নিতে হবে। উন্নত দেশের সঙ্গে ডিজিটাল প্রযুক্তি প্রয়োগ ও ব্যবহারের ভাবনার সঙ্গে আমাদের চিন্তা-ভাবনাও এক হবে না। মন্ত্রী গত এগারো বছরে ডিজিটাল প্রযুক্তি বিকাশের অগ্রগতি তুলে ধরে বলেন, গত জানুয়ারির পর ইন্টারনেট যোগাযোগ দ্বিগুণের বেশি বৃদ্ধি পেয়েছে। জানুয়ারিতে দেশে এক হাজার জিবিপিএস ইন্টারনেট ব্যান্ডউইডথ ব্যবহৃত হতো, তা বেড়ে এখন ২১শ জিবিপিএসে উন্নীত হয়েছে। ২০০৮ সালে দেশে মাত্র ৮ জিবিপিএস ইন্টারনেট ব্যান্ডউইডথ ব্যবহৃত হতো আর ব্যবহারকারীর সংখ্যা ছিল মাত্র ৪০ লাখ, যা ২০২০ সালে সাড়ে ১০ কোটিতে উন্নীত হয়েছে। ইন্টারনেট সুবিধা দেশের প্রত্যন্ত গ্রামে পৌঁছে দেওয়া হয়েছে উল্লেখ করে মন্ত্রী বলেন, দেশের তিন হাজার আটশ ইউনিয়নে দ্রুতগতির ব্রডব্যান্ড সংযুক্তি ইতোমধ্যে পৌঁছে গেছে। দুর্গম চর, হাওর ও দ্বীপসহ অবশিষ্ট প্রায় ৭৩৮টি ইউনিয়নে ব্রডব্যান্ডে ইন্টারনেট পৌঁছে দেওয়ার কাজ শুরু হয়েছে। এ ক্ষেত্রে বঙ্গবন্ধু স্যাটেলাইট-১ এর মাধ্যমে কিছুকিছু দুর্গম এলাকায় আমরা নেটওয়ার্ক পৌঁছে দেওয়ার কাজ করছি। ৫জির জন্যও আমরা প্রস্তুতি নিচ্ছি। অনুষ্ঠানে সংসদ সদস্য সফিউল ইসলাম মহিউদ্দিন, বিজিএমইএ সভাপতি ড. রুবানা হক, সায়েম গ্রুপের কর্ণধার মনির হোসেন বক্তব্য রাখেন। অনুষ্ঠান সঞ্চালনা করেন মার্চেন্ট বের প্রতিষ্ঠাতা তরুণ উদ্যোক্তা সায়েম আহমেদ।

করোনা মোকাবেলায় সামাজিক দূরত্ব নিশ্চিত করতে মাঠে রয়েছে  সেনাবাহিনী

করোনা মোকাবেলায় কঠিন এক বাস্তবতার সামনে দাঁড়িয়ে ষোল  কোটি মানুষের জীবন রক্ষায় নিজেদের জীবনকে বিপন্ন করে মানবিক হৃদয় নিয়ে সামাজিক দূরত্ব নিশ্চিত করতে নানামুখী তৎপরতা চালাচ্ছেন বাংলাদেশ সেনাবাহিনীর সদস্যরা।

এরই ধারাবাহিকতায় সামাজিক দূরত্ব এবং হোম কোয়ারেন্টাইন নিশ্চিতের পাশাপাশি যশোর অঞ্চলের কর্মহীন গরিব ও দুস্থদের বাঁচিয়ে রাখতে নিত্য প্রয়োজনীয় সামগ্রী বিতরণের কর্মযজ্ঞ চালিয়ে যাচ্ছেন যশোর সেনানিবাসের সেনাসদস্যরা। কখনও কখনও টহলের গাড়িতে থাকা ত্রাণসামগ্রী দারিদ্র্যে জর্জরিত মানুষদের  দেখে গাড়ী থামিয়ে সড়কেই তুলে দেয়া হচ্ছে। এ সময় বিনা প্রয়োজনে কাউকে অযথা ঘোরাফেরা না করার জন্য অনুরোধ করেন সেনা সদস্যরা। পাশাপাশি তারা বেশি বেশি হাত ধোয়া, মাস্ক ব্যবহারসহ বিভিন্ন স্বাস্থ্যবিধি মেনে চলার অনুরোধ করেন। এছাড়া যশোর সেনানিবাসের মেডিক্যাল টিম কর্তৃক ইতোমধ্যে বৃহত্তর যশোর অঞ্চলের বিভিন্ন উপজেলায় অসহায় মানুষদের চিকিৎসা সেবা এবং বিনামূল্যে ঔষধ বিতরণ কার্যক্রম অব্যাহত রাখার পাশাপাশি গণপরিবহন মনিটরিং, করোনা সংক্রমিত এলাকায় সেনাবাহিনীর টহল জোরদারসহ নানামূখী জনকল্যাণমূলক কার্যক্রম অব্যাহত রেখেছে যশোর সেনানিবাসের  সেনাসদস্যরা। অন্যদিকে  খুলনার কয়রার উপকূলীয় এলাকায়  সেনাবাহিনীর তত্ত্বাবধানে দ্রুতগতিতে এগিয়ে চলছে বাঁধ নির্মানের কাজ। এর ফলে উপকূলবর্তী মানুষের মুখে হাসি ফুটতে শুরু করেছে। এছাড়াও বৃহত্তর যশোর অঞ্চলের বন্যাকবলিত পানিবন্দী শত শত অসহায় মানুষের মাঝে সুপেয় পানি ও ত্রাণ সহায়তা প্রদানের পাশাপাশি জরুরী চিকিৎসা সহায়তা প্রদান কার্যক্রম অব্যাহত রেখেছে যশোর সেনানিবাসের সেনাসদস্যরা। সংবাদ বিজ্ঞপ্তি

দৌলতপুর সীমান্তে ফেনসিডিল, মদ ও ইয়াবা উদ্ধার – আটক-১

দৌলতপুর প্রতিনিধি ॥ কুষ্টিয়ার দৌলতপুর সীমান্তে বিজিবি’র পৃথক অভিযানে ৭৯ বোতল ফেনসিডিল, ২০ বোতল মদ ও ১৯৯ পিস ইয়াবা উদ্ধার হয়েছে এবং আটক হয়েছে বকুল মিয়া নামে এক মাদক পাচারকারী। গতকাল শনিবার ও শুক্রবার রাতে বিভিন্ন সীমান্তে অভিযান চালিয়ে এসব মাদক উদ্ধারসহ একজনকে আটক করেছে বিজিবি। বিজিবি সূত্র জানায়, মাদক পাচারের গোপন সংবাদ পেয়ে ৪৭ বিজিবি ব্যাটালিয়ন অধিনস্থ জয়পুর বিওপি’র টহল দল শুক্রবার দিবাগত রাত পৌনে ২টার দিকে বিলগাথুয়া মাঠে অভিযান চালিয়ে ৪১ বোতল ফেনসিডিল উদ্ধার করেছে। একইদিন রাত সোয়া ৭টার দিকে উদয়নগর বিওপি’র টহল দল ৮১/১-এস সীমান্ত পিলার সংলগ্ন বাংলাদেশ ভূ-খন্ডে পদ্মা নদীর পাড়ে অভিযান চালিয়ে ১৯৯ পিস ইয়াবা, ২ বোতল ফেনসিডিল ও একটি মোটরসাইকেলসহ মাদক পাচারকারী বকুল মিয়া (২৭) কে আটক করেছে। সে রাজশাহীর বাঘা উপজেলার আতারপাড়া গ্রামের মৃত আহম্মদ হাওলাদারের ছেলে। পরে তাকে দৌলতপুর থানায় সোপর্দ করা হয়েছে। এছাড়াও কাজীপুর বিওপি’র টহল দল গতকাল শনিবার ভোর ৫টার দিকে ব্রীজ বাজারে অভিযান চালিয়ে ৩৬ বোতল ফেনসিডিল ও ২০ বোতল বেঙ্গল টাইগার মদ উদ্ধার করেছে।

বছরে ১০০ কোটি ডোজ টিকা উতপাদন করবে চীন

ঢাকা অফিস ॥ করোনাভাইরাসের সম্ভাব্য টিকার ১০০ কোটি ডোজ প্রতি বছর উৎপাদনের লক্ষ্যমাত্রা নির্ধারণ করেছে চীন। শুক্রবার দেশটির এক স্বাস্থ্য কর্মকর্তা জানিয়েছে, সরকারের দ্রুত পদক্ষেপের ফলে আগামী বছর ১০০ কোটি ডোজ উৎপাদনের সক্ষমতা অর্জিত হবে। এই লক্ষ্যে নতুন নতুন কারখানা স্থাপন করা হয়েছে। মার্কিন বার্তা সংস্থা এসোসিয়েটেড প্রেস (এপি) এখবর জানিয়েছে। চীনের জাতীয় স্বাস্থ্য কমিশনের ঝেং জংওয়েই জানান, এই বছরের শেষ দিকে ৬১০ মিলিয়ন ডোজ উৎপাদনের লক্ষ্যমাত্রা অর্জন করা সম্ভব হবে। আগামী বছর আমাদের সক্ষমতা ১০০ কোটি ডোজ ছাড়িয়ে যাবে। যুক্তরাষ্ট্রের ফার্মা জায়ান্ট ফাইজার ও মডার্নার পক্ষ থেকেও ২০২১ সালে ১০০ কোটি ডোজ উৎপাদনের ঘোষণা দেওয়া হয়েছে। ঝেং জানান, জনসাধারণের জন্য উন্মুক্ত হওয়ার আগে অগ্রাধিকার শ্রেণিকে যেমন, চিকিৎসাকর্মী, সীমান্তরক্ষী ও বয়স্কদের টিকা প্রদান করা হবে। টিকার পরীক্ষার জন্য অবকাঠামো ও কারখানা নির্মাণ করেছে চীন। একই সঙ্গে টিকা গবেষণায় নজর রাখার জন্য একটি স্বতন্ত্র কমিটি গঠন করা হয়েছে। দেশটির উদ্ভাবিত ১১টি ভ্যাকসিন ক্যান্ডিডেট হিউম্যান ট্রায়ালে রয়েছে। এগুলোর মধ্যে চারটি তৃতীয় ও চূড়ান্ত পর্বের হিউম্যান ট্রায়াল চালাচ্ছে। পরীক্ষায় এগিয়ে থাকা টিকাগুলোর একটি হলো বেসরকারি চীনা কোম্পানি সিনোভ্যাক উদ্ভাবিত করোনাভ্যাক। কোম্পানিটি বেইজিংয়ের বাইরে কারখানা গড়ে তুলছে। বৃহস্পতিবার কোম্পানির চেয়ারম্যান ইয়েইন ওয়েডং জানিয়েছেন, মাত্র কয়েক মাসে একটি কারখানা গড়ে তোলা হয়েছে। প্রয়োজন হলে আরও নির্মাণ করা হবে।

ধর্ষকদের দলীয় পরিচয় না দেখে গ্রেফতার করুন পররাষ্ট্রমন্ত্রী

ঢাকা অফিস ॥ সিলেটের এমসি কলেজ ছাত্রাবাসে স্বামীকে আটকে রেখে স্ত্রীকে গণধর্ষণের ঘটনায় জড়িতদের দ্রুত গ্রেফতার করে আইনের আওতায় আনতে পুলিশ ও র‌্যাবকে নির্দেশ দিয়েছেন পররাষ্ট্রমন্ত্রী একে আবদুল মোমেন। ঘটনায় জড়িতদের গ্রেফতার ও শাস্তির আওতায় আনার জন্য সিলেট মহানগর পুলিশ কমিশনার গোলাম কিবরিয়া এবং র‌্যাব-৯ এর কমান্ডার লে. কর্নেল আবু মুসা মো. শরীফুল ইসলামের সঙ্গে মুঠোফোনে কথা বলেছেন পররাষ্ট্রমন্ত্রী। পররাষ্ট্রমন্ত্রী বলেন, ধর্ষক যে দলের হোক, শাস্তি অবশ্যই পেতে হবে। একজন গৃহবধূকে ঐতিহ্যবাহী বিদ্যাপীঠের ছাত্রাবাসে গণধর্ষণ করে তারা কলেজকে কলুষিত করেছে। যার কারণে তাদের কোনো ছাড় নেই। এসব তথ্য নিশ্চিত করে পররাষ্ট্রমন্ত্রীর ব্যক্তিগত কর্মকর্তা শফিউল আলম জুয়েল বলেন, ধর্ষকদের দলীয় পরিচয় না দেখে অপরাধী হিসেবে দেখতে এবং দ্রুত সময়ের মধ্যে গ্রেফতার করতে পুলিশ ও র‌্যাবকে নির্দেশ দিয়েছেন পররাষ্ট্রমন্ত্রী। গত শুক্রবার বিকেলে স্বামীর সঙ্গে এমসি কলেজে বেড়াতে গিয়েছিলেন এক গৃহবধূ। সন্ধ্যায় তাদের কলেজ থেকে ছাত্রাবাসে ধরে নিয়ে যায় ছাত্রলীগের ৬-৭ জন নেতাকর্মী। এরপর দুজনকে মারধর করা হয়। একই সঙ্গে স্বামীকে আটকে রেখে তার সামনে স্ত্রীকে গণধর্ষণ করে তারা। খবর পেয়ে রাতে ছাত্রাবাস থেকে ওই দম্পতিকে উদ্ধার করে পুলিশ। পরে ধর্ষণের শিকার হওয়া নারীকে ওসমানী মেডিকেল কলেজ হাসপাতালের ওসিসি সেন্টারে ভর্তি করা হয়।

দৌলতপুরে পদ্মা নদীতে ভ্রাম্যমান আদালতের অভিযান

সরকারী নিষেধাজ্ঞা অমান্য করে অবৈধভাবে বালি উত্তোলনের দায়ে ৫০ হাজার টাকা অর্থদন্ড

শরীফুল ইসলাম ॥ কুষ্টিয়ার দৌলতপুরে সরকারী নিষেধাজ্ঞা অম্যান্য করে পদ্মা নদীতে অবৈধভাবে বালি উত্তোলনের দায়ে মোজাম্মেল হোসেন (৩৫) নামে এক ব্যক্তির ৫০ হাজার টাকা অর্থদন্ড করেছেন ভ্রাম্যমান আদালত। গতকাল শনিবার দুপুর দেড়টার দিকে দৌলতপুর উপজেলার মরিচা ইউনিয়নের বৈরাগীর চরের ভাদু শাহ্র মাজারের নিকট পদ্মা নদীতে অভিযান চালিয়ে বালি উত্তোলন ও সরবরাহ করার সময় ওই ব্যক্তির এ অর্থদন্ড করেন ভ্রাম্যমান আদালতের বিচারক ও নির্বাহী ম্যাজিষ্ট্রেট শারমিন আক্তার।

ভ্রাম্যমান আদালত সূত্র জানায়, সরকারী নিষেধাজ্ঞা অম্যান্য করে পদ্মা নদীতে স্যালো ইঞ্জিন চালিত ড্রেজার দিয়ে অবৈধভাবে বালি উত্তোলন করা হচ্ছে এমন সংবাদ পেয়ে দৌলতপুর উপজেলা নির্বাহী অফিসার শারমিন আক্তারের নেতৃত্বে ভ্রাম্যমান আদালত পদ্মা নদীতে অভিযান চালায়। এসময় পাবনা জেলার ঈশ^রদী উপজেলার পানসারাহাট এলাকার অবৈধ বালি উত্তোলনকারী মোজম্মেল হোসেনকে আটক করা হয়। পরে বালু মহল ও মাটি ব্যবস্থাপনা আইন ২০১০ এর ৪/১৫(১) ধারায় তাকে ৫০ হাজার টাকা অর্থদন্ড করেন ভ্রাম্যমান আদালতের বিচারক ও নির্বাহী ম্যাজিষ্ট্রেট শারমিন আক্তার। এসময় তাকে সতর্ক করা হয়। এর আগে গত ২১ সেপ্টেম্বর বৈরাগীর চর এলাকায় পদ্মা নদীতে অভিযান চালিয়ে তছিকুল ইসলাম নামে অবৈধ বালি উত্তোলনকারীকে ১ লক্ষ ৫০ হাজার টাকা অর্থদন্ড করেন ভ্রাম্যমান আদালত।

কুষ্টিয়ার মিরপুরে পৃথক ধর্ষণ মামলায় গ্রেফতার ২

আমলা প্রতিনিধি ॥ কুষ্টিয়ার মিরপুরে পৃথক ধর্ষক মামলায় দুইজনকে গ্রেফতার করেছে পুলিশ। গতকাল শনিবার (২৬ সেপ্টেম্বর) রাত ৮টার দিকে কুষ্টিয়ার মিরপুর উপজেলার পৃথক স্থান থেকে তাদের গ্রেফতার করে মিরপুর থানা পুলিশ। গ্রেফতারকৃতরা হলেন- কুষ্টিয়ার মিরপুর উপজেলার সামুখিয়া এলাকার মৃত সিরাজুল মোল্লার ছেলে এনামুল হক মোল্লা (৪০) এবং একই উপজেলার গোপালপুর শান্তিমোড় এলাকার বজলু সরদারের ছেলে রাসেল (২৮)। মিরপুর থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) আবুল কালাম গ্রেফতারের বিষয় নিশ্চিত করে জানান, বিয়ের প্রলোভন দেখিয়ে এক স্বামী পরিত্যক্তা এক সন্তানের জননীকে ধর্ষণের ঘটনায় ঐ নারী বাদী হয়ে শনিবার (২৬ সেপ্টেম্বর) দুপুরে মিরপুর থানায় ২০০০ সালের নারী ও শিশু নির্যাতন দমন আইনে একটি মামলা দায়ের করেন। যার মামলা নম্বর-২১। এ মামলায় একমাত্র আসামী এনামুল হক মোল্লাকে সন্ধ্যায় গ্রেফতার করা হয়েছে। এছাড়াও সন্ধ্যায় অপর এক স্বামী পরিত্যাক্তা এক সন্তানের জননীকে বিয়ের প্রলোভন দিয়ে ঢাকায় নিয়ে ধর্ষণের ঘটনায় ৩জনের নাম উল্লেখ করে নারী ও শিশু নির্যাতন দমন আইনে একটি মামলা দায়ের করেন ঐ নারীর পিতা। যার মামলা নম্বর-২২। এ মামলায় শনিবার রাত ৮টার দিকে মামলার প্রধান আসামী রাসেলকে গ্রেফতার করা হয়।

এড. সেনা ন্যাশনাল ব্যাংক লিমিটেড কুষ্টিয়া শাখার আইন উপদেষ্টা মনোনীত

নিজ সংবাদ ॥ ন্যাশনাল ব্যাংক লিমিটেড, কুষ্টিয়া শাখার আইন উপদেষ্টা হিসেবে গত ২৪ সেপ্টেম্বর  কেন্দ্রীয় ন্যাশনাল ব্যাংক ঢাকা সিনিয়র এসিস্ট্যান্ট ভাইস-প্রেসিডেন্ট অপুর্ব কুমার কর ও সিনিয়র ভাইস-প্রেসিডেন্ট মোহাম্মদ সোহেল ফয়সাল সাক্ষরিত খঅড ্ জঊঈঙঠঊজণ উওঠওঝওঙঘ স্বারক নং- ঝঋ-ঔও/খ্ জউ/খঅড/২০২০/৭২৯ এর মাধ্যমে এড. সাজ্জাদ  হোসেন সেনাকে নিয়োগ প্রদান করেছেন। এড. সেনা আইন উপদেষ্টা হিসেবে মনোনীত হওয়ায় সংশ্লিষ্ট সবার প্রতি কৃতজ্ঞতা প্রকাশ ও কর্মক্ষেত্রে সকলের সহোযোগিতা কামনা করেছেন৷

 

২৪ ঘণ্টায় ডেঙ্গু নিয়ে তিনজন হাসপাতালে ভর্তি

ঢাকা অফিস ॥ ডেঙ্গু জ¦রে আক্রান্ত হয়ে গত ২৪ ঘণ্টায় রাজধানী ঢাকার সরকারি-বেসরকারি হাসপাতালে তিনজন রোগী ভর্তি হয়েছেন। চলতি বছরের ১ জানুয়ারি থেকে এ পর্যন্ত সারাদেশের বিভিন্ন হাসপাতালে ডেঙ্গু ও সন্দেহজনক ডেঙ্গু নিয়ে ৪৫৩ জন হাসপাতালে ভর্তি হয়েছেন। আক্রান্তদের মধ্যে ছাড়পত্র নিয়ে ফিরে গেছেন ৪৪৪ জন। বর্তমানে দেশের বিভিন্ন সরকারি-বেসরকারি হাসপাতালে মোট আট জন ডেঙ্গু রোগী ভর্তি আছেন। তাদের মধ্যে ঢাকায় সাত জন, ঢাকার বাইরে একজন রয়েছেন। গতকাল শনিবার স্বাস্থ্য অধিদপ্তরের হেলথ ইমার্জেন্সি অপারেশন সেন্টার ও কন্ট্রোল রুমের দায়িত্বপ্রাপ্ত কর্মকর্তা ও স্বাস্থ্য তথ্য ইউনিটের (এমআইএস) ডেপুটি চিফ (মেডিক্যাল) ডা. এবি মো. শামছুজ্জামান এ তথ্য জানান। স্বাস্থ্য অধিদপ্তরের কন্ট্রোল রুম থেকে জানা যায়, চলতি বছরের জানুয়ারি মাসে সবচেয়ে বেশি ১৯৯ জন, ফেব্রুয়ারিতে ৫৪ জন, মার্চে ২৭ জন, এপ্রিলে ২৫ জন, মে মাসে ১০ জন, জুনে ২০ জন, জুলাইয়ে ২৩ জন, আগস্টে ৬৭ জন এবং ২৬ সেপ্টেম্বর পর্যন্ত ৩৭ জন ডেঙ্গু রোগে আক্রান্ত হয়েছেন। এছাড়া চলতি বছরে ডেঙ্গু ও ডেঙ্গু সন্দেহে এ পর্যন্ত এক রোগীর মৃত্যুর তথ্য সরকাররে রোগতত্ত্ব, রোগ নিয়ন্ত্রণ ও গবেষণা ইনস্টিটিউটে (আইইডিসিআর) পাঠানো হয়। পরে ওই ব্যক্তির মৃত্যুর তথ্য বিশ্লেষণ করে আইইডিসিআর নিশ্চিত হয়েছে মৃত্যুটি ডেঙ্গুজনিত নয়। তাই এ বছর কোনো ডেঙ্গু রোগীর মৃত্যু হয়নি। স্বাস্থ্য অধিদপ্তর বলছে, মশার আবাস ও প্রজনন ক্ষেত্র ধ্বংস করতে পারলেই এডিস মশা নির্মূল করা যাবে। সারাদেশ এডিস মশামুক্ত করতে সিটি করপোরেশনের পাশাপাশি স্থানীয় প্রশাসন দায়িত্বের সঙ্গে কাজ করছে। এডিস মশার লার্ভা ধ্বংস করতে প্রতিনিয়ত অভিযান চলছে। ডেঙ্গু মেকাবিলায় অধিদপ্তর প্রস্তুত রয়েছে।

একাদশ শ্রেণিতে বিষয়ভিত্তিক রেজিস্ট্রেশন শুরু হচ্ছে আজ

ঢাকা অফিস ॥ একাদশ শ্রেণিতে ভর্তি হওয়া শিক্ষার্থীদের বিষয়ভিত্তিক রেজিস্ট্রেশন আজ রোববার থেকে শুরু হবে। চলবে আগামী ১১ অক্টোবর পর্যন্ত। ভর্তির ওয়েবসাইটে শিক্ষার্থীদের রেজিস্ট্রেশন করতে হবে। তবে রেজিস্ট্রেশন করার আগে ভর্তি নিশ্চায়ন করতে হবে শিক্ষার্থীদের। সম্প্রতি এসব তথ্য জানিয়ে জরুরি একটি বিজ্ঞপ্তি জারি করেছে আন্তঃশিক্ষা বোর্ড সমন্বয় সাব-কমিটি। কমিটির সভাপতি ও ঢাকা বোর্ডের চেয়ারম্যান অধ্যাপক মু. জিয়াউল হক স্বাক্ষরিত বিজ্ঞপ্তিতে বলা হয়, একাদশ শ্রেণিতে ভর্তিকৃত শিক্ষার্থীদের বিষয়ভিত্তিক রেজিস্ট্রেশন ২৭ সেপ্টেম্বর থেকে ১১ অক্টোবর পর্যন্ত চলবে। শিক্ষাপ্রতিষ্ঠানগুলো এ সময়ের মধ্যে ভর্তির ওয়েবসাইটে শিক্ষার্থীদের রেজিস্ট্রেশন সম্পন্ন করবে। বিজ্ঞপ্তি আরও বলা হয়েছে, বিষয়ভিত্তিক রেজিস্ট্রেশনের আগে শিক্ষার্থীদের ভর্তি নিশ্চায়ন করতে হবে।

শেখ হাসিনা আছেন বলেই দুর্দিনেও জনগণ সহযোগিতা পাচ্ছে – পররাষ্ট্রমন্ত্রী

ঢাকা অফিস ॥ প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা আজ জীবিত আছেন বলেই দুর্দিনেও জনগণ সহযোগিতা পাচ্ছেন। করোনা ভাইরাসের সময় আমরা যখন পিপিই, ভেন্টিলেটর নিয়ে ভাবছিলাম, শেখ হাসিনা তখন জনগণের কথা ভাবছিলেন। শহর থেকে তৃণমূল পর্যন্ত বাড়িতে বাড়িতে খাবার সামগ্রী পৌঁছে দিয়েছেন। তিনি বিশ্বের কাছে দেশের মান-ইজ্জত অনেক উঁচুতে নিয়েছেন। গতকাল শনিবার জাতীয় প্রেসক্লাবে প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা’র ৭৪তম জন্মদিন এবং বঙ্গবন্ধু সাংস্কৃতিক জোটের ৪০তম প্রতিষ্ঠাবার্ষিকী উপলক্ষে আয়োজিত এক আলোচনা সভায় প্রধান অতিথির বক্তব্যে এসব কথা বলেন পররাষ্ট্রমন্ত্রী ড. একে আবদুল মোমেন। পররাষ্ট্রমন্ত্রী বলেন, একসময় দেশ দুর্নীতিতে বার বার চ্যাম্পিয়ন হয়েছে, এর হাত থেকে দেশকে বাঁচিয়ে একটা উন্নয়নের পথে এনেছেন আজকের প্রধানমন্ত্রী। বঙ্গবন্ধু ও তার কন্যার প্রতিটি সিদ্ধান্ত, চিন্তা একই ছিল। তাদের উভয়েরই লক্ষ্য জনগণের উন্নয়ন। করোনা ভাইরাসের ভয়াবহতা থেকে রক্ষা পেতে আমরা সবাই যখন পিপিই, ভেন্টিলেটর নিয়ে ভাবছিলাম; কীভাবে সংগ্রহ করবো। শেখ হাসিনা তখন জনগণের কথা ভাবছিলেন। তারা করোনাকালে কীভাবে চলবেন, খাবার কোথায় পাবেন। তার সিদ্ধান্ত মতে শহর থেকে তৃনমূল পর্যন্ত বাড়িতে বাড়িতে খাবারসামগ্রী পৌঁছে দিয়েছি। ড. একে আবদুল মোমেন বলেন, আমরা খুবই সৌভাগ্যবান যে শেখ হাসিনার মতো একজন রাষ্ট্র নায়ক পেয়েছি। বঙ্গবন্ধুর অসাম্প্রদায়িক দেশ গড়তে নিরলসভাবে কাজ করছেন তিনি। শেখ হাসিনা জীবিত আছেন বলেই দেশে আইনের শাসন প্রতিষ্ঠা হয়েছে, ব্যবসায়ীরা ভালোভাবে ব্যবসা করতে পারছেন। পরীক্ষায় আর সেশনজট হয় না, গণমাধ্যমের স্বাধীনতা এসেছে, গণমাধ্যমের প্রসার ঘটেছে। অনুষ্ঠানে সংস্কৃতি প্রতিমন্ত্রী কেএম খালিদ বাবু বলেন, জাতির পিতার খুনের সময় অনেকেই উল্লাস করেছেন, তারা এখন আমাদের শরিক দল। জাতির পিতার কন্যাকে ১৯বার হত্যা করার চক্রান্ত করা হয়েছে। শেখ হাসিনাকে আল্লাহ বাঁচিয়ে রেখেছেন বলেই আজ দেশের সব সেক্টরের উন্নতি হয়েছে। তার বেঁচে থাকা খুবই জরুরি, তিনি না থাকলে দেশের উন্নয়ন বাঁধাগ্রস্ত হবে। বঙ্গবন্ধু সাংস্কৃতিক জোটের সভাপতি ফালগুনী হামিদের সভাপতিত্বে আয়োজিত অনুষ্ঠানে বিশেষ অতিথি ছিলেন আওয়ামী লীগের ত্রাণ ও সমাজকল্যাণ সম্পাদক বাবু সুজিত রায় নন্দী, আওয়ামী লীগ নেতা শাহে আলম মুরাদসহ সংগঠনটির কেন্দ্রীয় নেতারা। অনুষ্ঠান শেষে বঙ্গবন্ধু সাংস্কৃতিক জোটের ৪০তম প্রতিষ্ঠাবার্ষিকী উপলক্ষে এক বর্ণাঢ্য শোভাযাত্রা বের করা হয়।

বঙ্গবন্ধুর আর্দশের এক নিবেদিত প্রাণ সৈনিক জাহিদ হোসেন জাফর

নিজ সংবাদ ॥ জাহিদ হোসেন জাফর। জাতির জনক বঙ্গবন্ধু শেখ মজিবুর রহমানের আর্দশের এক নিবেদিত প্রাণ সৈনিক। বয়স সত্তরের কোটা পেরিয়েছে অনেক আগেই। এ বয়সে এসেও একাত্তরের মহান মুক্তিযুদ্ধের অগ্রভাগের সৈনিক জাহিদ হোসেন জাফর আজও আওয়ামী লীগের জন্য নিবেদিত প্রাণ। ১৯৭৫ এর ১৫ আগস্ট বঙ্গবন্ধু ঘাতকের বুলেটে সপরিবারে নিহত হওয়ার পর স্বৈরশাসক জিয়াউর রহমানের সামরিক বাহিনীর হাতে কুষ্টিয়ায় প্রথম যে মানুষটি আটক হয়েছিলেন, তিনি হলেন এই জাহিদ হাসেন জাফর। ১৯৭৫ সালের ১৫ আগস্ট হাজার বছরের শ্রেষ্ঠ বাঙালী জাতির জনক বঙ্গবন্ধু  শেখ মুজিবুর রহমান ঘাতকদের হাতে সপরিবারে নিহত হন। এ জঘন্য হত্যার প্রতিবাদে জাহিদ হোসেন গোপনে স্থানীয় মুক্তিযোদ্ধাদের সংগঠিত করতে শুরু করে দেন। ১৯৭৫ সালের আজকের এইদিনে (২৭ সেপ্টেম্বর) তৎকালীন  সেনাপ্রধান (পরবর্তীতে স্বৈরশাসক) জিয়াউর রহমানের নেতৃত্বাধীন সামরিক বাহিনী মুক্তিযোদ্ধা এবং আওয়ামী লীগের নেতাদের দমন শুরু করে। এর অংশ হিসেবে কুষ্টিয়া জেলার মধ্যে সর্বপ্রথম জাহিদ হোসেন আটক করে। বঙ্গবন্ধুর এই সৈনিককে আটকের পর ৪৯ দিন টর্চার সেলে রেখে শারীরিকভাবে নির্যাতন করে। পরবর্তীতে প্রায় এক বছর তাকে ডিটেনশনে আটক রাখা হয়। ১৯৭৬ সালের ১৮ নভেম্বর ১৩ মাস ২২ দিন পর অসুস্থ অবস্থায় জাফরকে মুক্তি দেওয়া হয়। কারাভোগকালীন সময়ে তিনি অমানুষিক নির্যাতনে শারীরিক ও মানসিকভাবে চরমভাবে ক্ষতিগ্রস্থ হন। সেই নির্যাতনের ভয়বহতা এতটায় পৈশাচিক ছিল, যে আজ ৪৫ বছর পর সে কথা ভেবে শিউরে ওঠেন জাহিদ হোসেন জাফর। বীর মুক্তিযোদ্ধা জাহিদ হোসেন জাফরের রাজনৈতিক জীবনও বেশ বর্ণাঢ্য। তিনি ছাত্র জীবনে ছাত্রলীগের রাজনীতিতে সক্রিয়া ছিলেন। তিনি একাধারে কুষ্টিয়া সরকারী কলেজ ছাত্রলীগের ক্রীড়া সম্পাদক, সাধারণ সম্পাদকের দায়িত্ব পালন করেন। তিনি পান্টি ইউনিয়ন আওয়ামীলীগের সাধারণ সম্পাদক থেকে শুরু করে পর্যায়ক্রমে কুমারখালী উপজেলা আওয়ামী লীগের সাংগঠনিক সম্পাদক, সাধারণ সম্পাদক ও সভাপতির দায়িত্ব পালন করেন। জেলার রাজনীতিতেও তিনি বলিষ্ঠ ভূমিকা রেখেছেন। জাফর কুষ্টিয়া জেলা আওয়ামীলীগ যুগ্ম-সাধারণ সম্পাদক, সহ-সভাপতি ও যুগ্ম-আহ্বায়কের দায়িত্ব পালন করেন। সর্বশেষ তিনি কুষ্টিয়া জেলা পরিষদের প্রশাসক হিসেবে সফলভাবে ৫ বছর দায়িত্ব পালন করেন। দলের দুর্দিনে প্রতিবাদী কন্ঠস্বর জাহিদ হোসেন জাফরকে লোভ আর দুর্নীতি কখনও আকৃষ্ট করতে পারেনি। মহান মুক্তিযুদ্ধেও রয়েছে তার অসামান্য ভূমিকা। তিনি যুদ্ধকালীন জেলা মুজিব বাহিনীর ডেপুটি কমান্ডার হিসাবে দায়িত্ব পালন করেন এবং তার নেতৃত্বে মুক্তিযোদ্ধারা সংগঠিত হয়। জাহিদ হোসেন জাফর জানান, ‘বঙ্গবন্ধুর আদর্শের একজন কর্মী হিসেবে তিনি জননেত্রী শেখ হাসিনার নেতৃত্বে আজীবন কাজ করে যেতে চাই।’

করোনায় আরও ৩৬ জনের মৃত্যু, শনাক্ত ১১০৬

ঢাকা অফিস ॥ সারাদেশে গত ২৪ ঘণ্টায় করোনাভাইরাসে (কোভিড-১৯) আক্রান্ত হয়ে আরও ৩৬ জন মারা গেছেন। এদের মধ্যে পুরুষ ২৫ ও নারী ১১ জন। ৩৬ জনের মধ্যে হাসপাতালে ৩৫ জন ও বাড়িতে একজনের মৃত্যু হয়। এ নিয়ে ভাইরাসটিতে মৃতের সংখ্যা বেড়ে দাঁড়াল পাঁচ হাজার ১২৯ জনে। করোনাভাইরাস শনাক্তে গত ২৪ ঘণ্টায় ১০৪টি পরীক্ষাগারে ১০ হাজার ৬৮০টি নমুনা সংগ্রহ হয়। পরীক্ষা হয়েছে ১০ হাজার ৭৬৫টি। একই সময়ে করোনাভাইরাসে আক্রান্ত নতুন রোগী শনাক্ত হয়েছে আরও এক হাজার ১০৬ জন। ফলে দেশে মোট শনাক্ত রোগীর সংখ্যা দাঁড়াল তিন লাখ ৫৭ হাজার ৮৭৩ জনে। এ পর্যন্ত মোট নমুনা পরীক্ষার সংখ্যা দাঁড়িয়েছে ১৮ লাখ ৯৮ হাজার ৭৭৫টি। গতকাল শনিবার বিকেলে স্বাস্থ্য অধিদফতরের অতিরিক্ত মহাপরিচালক (প্রশাসন) অধ্যাপক ডা. নাসিমা সুলতানা স্বাক্ষরিত করোনাভাইরাস বিষয়ক এক সংবাদ বিজ্ঞপ্তিতে এ তথ্য জানানো হয়। বিজ্ঞপ্তিতে বলা হয়, গত ২৪ ঘণ্টায় সুস্থ হয়েছেন আরও এক হাজার ৭৫৩ জন। এ নিয়ে মোট সুস্থ রোগীর সংখ্যা দাঁড়াল দুই লাখ ৬৮ হাজার ৭৭৭ জনে। ২৪ ঘণ্টায় নমুনা পরীক্ষার তুলনায় রোগী শনাক্তের হার ১০ দশমিক ২৭ শতাংশ এবং এ পর্যন্ত নমুনা পরীক্ষার তুলনায় রোগী শনাক্তের হার ১৮ দশমিক ৮৫ শতাংশ। রোগী শনাক্তের তুলনায় সুস্থতার হার ৭৫ দশমিক ১০ শতাংশ এবং মৃত্যুর হার এক দশমিক ৪৩ শতাংশ। এ পর্যন্ত করোনায় মোট মৃতের মধ্যে পুরুষ তিন হাজার ৯৭৪ (৭৭ দশমিক ৪৮ শতাংশ) ও নারী এক হাজার ১৫৫ জন (২২ দশমিক ৫২ শতাংশ)। বয়সভিত্তিক বিশ্লেষণে দেখা গেছে, গত ২৪ ঘণ্টায় করোনায় মৃত ৩৬ জনের মধ্যে চল্লিশোর্ধ্ব সাতজন, পঞ্চাশোর্ধ্ব আটজন এবং ষাটোর্ধ্ব ২১ জন। বিভাগ অনুযায়ী, ৩৬ জনের মধ্যে ঢাকা বিভাগে ২৩ জন, চট্টগ্রামে আটজন, খুলনায় একজন, বরিশাল একজন, সিলেট দুইজন ও ময়মনসিংহে একজন রয়েছেন।