গাংনীতে  পানিতে ডুবে শিশুর মৃত্যু

গাংনী প্রতিনিধি ॥ মেহেরপুরের গাংনী উপজেলার তেঁতুলবাড়ীয়া ইউনিয়নের সীমান্তবর্তি সহড়াতলা গ্রামে পানিতে ডুবে আলিফ হোসেন (৭) নামের এক শিশুর মৃত্যু হয়েছে। শিশু আলিফ সহড়াতলা গ্রামের জিল্লুর রহমানের ছেলে। গতকাল বৃহস্পতিবার বিকেলে সহড়াতলা গ্রামের আইতাল মহুরার পুকুর থেকে শিশু আলিফের মরদেহ উদ্ধার করে স্থানীয় বামন্দী ফায়ার সার্ভিসের সদস্যরা। স্থানীয়রা জানান আলিফ বৃহস্পতিবার দুপুরে বাড়ির পাশে গ্রামের আইতাল মহুরার পুকুরে খেলার সাথীদের সাথে গোসল করতে গিয়ে ডুবে যায়। তার খেলার সাথীরা বাড়িতে এসে বিষয়টি লোকজনকে জানায়। এসময় গ্রামের লোকজন ওই গভীর পুকুরে তাকে খুঁজে না পেয়ে স্থানীয় ফায়ার সার্ভিসের লোকজনকে জানায়। খবর পেয়ে ফায়ার সার্ভিসের সদস্যরা ওই পুকুরের তলদেশ থেকে নিখোঁজ আলিফের মরদেহ উদ্ধার করে।

বর্ণাঢ্য আয়োজনে কালুখালী উপজেলা’র জন্মদিন উদযাপণ

কালুখালী প্রতিনিধি ॥ গতকাল বৃহস্পতিবার ২৪ সেপ্টেম্বর রাজবাড়ী জেলার কালুখালী উপজেলা’র শুভ জন্মদিন বর্ণাঢ্য আয়োজনে উদযাপণ করা হয়েছে। কালুখালী উপজেলা প্রশাসনের আয়োজনে এ উপলক্ষ্যে বিকাল ৩টায় উপজেলা পরিষদের হলরুমে উপজেলার সরকারী কর্মকর্তা, রাজনৈতিক ব্যক্তিবর্গ, শিক্ষা প্রতিষ্ঠানের প্রধানগণ, বিভিন্ন সামাজিক ও সাংস্কৃতিক ব্যক্তিত্বের অংশগ্রহণে আলোচনা সভা শেষে কেক কাটা হয়।

অনুষ্ঠানে কালুখালী উপজেলা পরিষদ চেয়ারম্যান আলিউজ্জামান চৌধুরী (টিটো), উপজেলা নির্বাহী অফিসার মোঃ আব্দুল্লাহ্ আল মামুন, উপজেলা সহকারী কমিশনার (ভূমি) শেখ নুরুল আলম, উপজেলা আওয়ামীলীগের সভাপতি মোঃ আতিউর রহমান নবাব, উপজেলা ভাইস চেয়ারম্যান শেখ এনায়েত হোসেন, কালুখালী থানা ইন্সপেক্টর (তদন্ত) মোহাম্মদ আব্দুল গণি,  উপজেলা মৎস্য কর্মকর্তা মোঃ আব্দুস সালাম,  উপজেলা প্রকৌশলী তৌহিদুল হক জোয়াদ্দার, কালুখালী সরকারী কলেজের সহকারী অধ্যাপক মঞ্জুর রহমান মিঞা, আব্দুর রহিম, কালুখালী মহিলা কলেজের অধ্যক্ষ শিকদার মমতাজ আহমেদ, রতনদিয়া ইউপি চেয়ারম্যান মেহেদী হাচিনা পারভীন নিলুফা, বোয়ালিয়া ইউপি চেয়ারম্যান মোছাঃ হালিমা বেগম, মদাপুর ইউপি চেয়ারম্যান আবুল কালাম মৃধা, সাওরাইল ইউপি চেয়ারম্যান শহিদুল ইসলাম আলীসহ বিভিন্ন রাজনৈতিক, সামাজিক ব্যক্তিত্ব ও সাংবাদিকবৃন্দ উপস্থিত ছিলেন।  উল্লেখ্য, ২০০৬ সালের ২৪ সেপ্টেম্বর নিকারের ৯৪তম বৈঠকে পাংশা উপজেলার ১৭টি ইউনিয়ন থেকে ৭টি ইউনিয়ন নিয়ে গঠিত হয় কালুখালী উপজেলা। এতে আজকের এই দিনে ১৫ বছরে পা দিয়েছে উপজেলাটি। পরে জমি অধিগ্রহণ সহ সকল কার্যক্রম শেষে ২০১০ সালে নির্মাণ করা হয় কালুখালী উপজেলা পরিষদ ভবন।

আরও একটি ভ্যাকসিনের অনুমোদন দিচ্ছে রাশিয়া

ঢাকা অফিস ॥ বিশ্বের প্রথম দেশ হিসেবে গত আগস্টে করোনাভাইরাসের ভ্যাকসিনের অনুমোদন দিয়েছে রাশিয়া। এবার আরও একটি ভ্যাকসিনের অনুমোদন দিতে যাচ্ছে ভ­াদিমির পুতিনের দেশ। প্রথম ভ্যাকসিনের অনুমোদনের পরই বিশ্বে সাড়া ফেলে দিয়েছে রাশিয়া। কয়েক মাসের ব্যবধানেই দ্বিতীয় ভ্যাকসিনের অনুমোদনের কথা জানাল দেশটি। রাশিয়ার বার্তা সংস্থা তাস নিউজ এজেন্সি জানিয়েছে, আগামী ১৫ অক্টোবরের মধ্যেই আরও একটি ভ্যাকসিনের অনুমোদন দিতে যাচ্ছে রাশিয়ার স্বাস্থ্য মন্ত্রণালয়। করোনার দ্বিতীয় এই সম্ভাব্য ভ্যাকসিনটি তৈরি করেছে সাইবেরিয়ার ভেক্টর রিসার্চ সেন্টার। গত সপ্তাহেই মানবদেহে এই ভ্যাকসিনের প্রাথমিক ট্রায়াল শেষ হয়েছে। মস্কোর গামালিয়া ইন্সটিটিউটের তৈরি স্পুটনিক-৫ ভ্যাকসিন গত আগস্টে অনুমোদন পাওয়ার পর এর চূড়ান্ত ধাপে কমপক্ষে ৪০ হাজার স্বেচ্ছাসেবী অংশ নিয়েছে। ২০টি দেশ ‘স্পুটনিক-৫’ নামে রাশিয়ার প্রথম ভ্যাকসিন নিতে আগ্রহী বলে সম্প্রতি রাশিয়ার প্রত্যক্ষ বিনিয়োগ তহবিলের (আরডিআইএফ) প্রধান নিশ্চিত করেছেন।ইতোমধ্যেই ওই ভ্যাকসিনের জন্য বিভিন্ন দেশ থেকে প্রাথমিকভাবে ১০০ কোটি ডোজের অর্ডার এসেছে। তবে রাশিয়া সবার আগে করোনা ভ্যাকসিন অনুমোদন দিলেও সমালোচকদের দাবি, রাজনৈতিক চাপের কারণে রুশ ভ্যাকসিন তৈরিতে গুরুত্বপূর্ণ অনেক ঝুঁকির বিষয় বাদ দেয়া হয়েছে। রাশিয়াকে বিশ্বের বৈজ্ঞানিক গবেষণার কেন্দ্র হিসেবে উপস্থাপনে গবেষকদের ওপর দ্রুত ভ্যাকসিন তৈরিতে চাপ ছিল বলে দাবি অনেকের। স্পুটনিক-৫ ভ্যাকসিনটির এখনও তৃতীয় ধাপের ক্লিনিক্যাল ট্রায়ালে পাস করা বাকি। তবে রুশ প্রেসিডেন্ট ভ­াদিমির পুতিন বলেছেন, ‘গামালিয়া ইনস্টিটিউটের তৈরি এ ভ্যাকসিন রাশিয়ার স্বাস্থ্য মন্ত্রণালয়ের সবুজ সংকেত পেয়েছে। শিগগিরই ব্যাপকহারে এর উৎপাদন শুরু হবে।’ তিনি আরও জানান, তার নিজের মেয়ের শরীরেই এর পরীক্ষা চালানো হয়েছে এবং এতে ভ্যাকসিনটি কার্যকর প্রমাণিত হয়েছে। তার মেয়ে এই টিকা গ্রহণের পর তেমন কোনো পার্শ্বপ্রতিক্রিয়া দেখা যায়নি বলেও উল্লেখ করেছেন পুতিন। দ্বিতীয় ভ্যাকসিনটি নিয়েও বেশ আশাবাদী রাশিয়া। এদিকে, সম্প্রতি রাশিয়ার তৈরি করোনাভাইরাসের ভ্যাকসিন স্পুটনিক-৫ এর প্রথম ব্যাচ জনসাধারণের জন্য উন্মুক্ত করা হয়েছে। দেশটির স্বাস্থ্য মন্ত্রণালয় বলছে, নিকট ভবিষ্যতে ভ্যাকসিনটির আঞ্চলিক সরবরাহ সম্পন্ন করার পরিকল্পনা রয়েছে। গত ১১ আগস্ট রাশিয়ার স্বাস্থ্য মন্ত্রণালয় বিশ্বে প্রথম হিসেবে করোনাভাইরাসের ভ্যাকসিন স্পুটনিক-৫ এর অনুমোদন দেয়। মস্কোর মেয়র সার্গেই সোবিয়ানিন আশাপ্রকাশ করে বলেছেন, রাশিয়ার রাজধানী মস্কোর বেশিরভাগ বাসিন্দাকে আগামী কয়েকমাসের মধ্যে করোনাভাইরাসের ভ্যাকসিনটি দেয়া হবে। রুশ স্বাস্থ্য মন্ত্রণালয়ের তথ্য অনুযায়ী, রাশিয়ার এই ভ্যাকসিনের প্রথম ব্যাচের সরবরাহ দেশটির বিভিন্ন অঞ্চলে নিকট ভবিষ্যতে সরবরাহ করার পরিকল্পনা রয়েছে। রাশিয়ার তৈরি করোনাভাইরাসের ভ্যাকসিন ‘স্পুটনিক ভি’ নিরাপদ এবং রোগ প্রতিরোধ ক্ষমতা তৈরি করতে সক্ষম বলে। সম্প্রতি মেডিকেল জার্নাল ল্যানসেটে এ-সংক্রান্ত একটি প্রতিবেদন প্রকাশ করা হয়েছে। অক্সফোর্ড ইউনিভার্সিটির তৈরি করোনার সম্ভাব্য ভ্যাকসিনের ইতিবাচক দিকের কথাও প্রথম সামনে এনেছিল ল্যানসেট। সেখানে গবেষকরা দাবি করেছিলেন, অক্সফোর্ড-অ্যাস্ট্রেজেনেকার কোভিড ভ্যাকসিন প্রায় ৯০ শতাংশ মানুষের শরীরে ভাইরাস প্রতিরোধী অ্যান্টিবডি তৈরি করেছে। এতে টি-কোষও সক্রিয় হয়েছে। রাশিয়ার টিকাও একইভাবে কাজ করছে বলে জানানো হয়েছে। এক গবেষণাপত্রে জানানো হয়েছে, ৭৬ জনকে করোনাভ্যাকসিনের দুটি ডোজ দেওয়া হয়েছিল। ৪২ দিন ধরে এই ভ্যাকসিনের পরীক্ষামূলক প্রয়োগ হয়েছে। প্রথম ডোজ দেওয়ার ২১ দিনের মধ্যেই অ্যান্টিবডি তৈরির প্রক্রিয়া শুরু হয়েছে। গত বছরের ডিসেম্বরে চীনের উহানে প্রাণঘাতী করোনাভাইরাস শনাক্ত হওয়ার পর থেকে এখন পর্যন্ত তা বিশ্বের দুই শতাধিক দেশে ছড়িয়েছে। বিশ্বজুড়ে করোনার তা-ব চললেও এখন পর্যন্ত রাশিয়া ছাড়া অন্য কোনও দেশ এর ভ্যাকসিন কিংবা প্রতিষেধক আবিষ্কার করতে পারেনি। তবে বিশ্বের বিভিন্ন দেশের বিজ্ঞানীদের তৈরি অন্তত ১৭৬টি ভ্যাকসিন পরীক্ষার বিভিন্ন ধাপে রয়েছে। এর মধ্যে অন্তত ৩৪টি মানবদেহে ক্লিনিক্যাল ট্রায়ালের পর্যায়ে পৌঁঁছেছে।চলতি বছরের শেষ অথবা আগামী বছরের মাঝামাঝি সময়ের দিকে করোনার অন্যান্য ভ্যাকসিন পাওয়া যেতে পারে বলে স্বাস্থ্য বিশেষজ্ঞরা প্রত্যাশা করছেন।

জন্মদিনে মেহেদী রুমীকে হাওয়া পরিবারের শুভেচ্ছা

দৈনিক হাওয়া পত্রিকার সম্পাদক মন্ডলীর সভাপতি সৈয়দ মেহেদী আহমেদ রুমীর জন্মদিনে শুভেচ্ছা জানিয়েছে দৈনিক হাওয়া পরিবার। বৃহস্পতিবার সন্ধ্যায় পত্রিকার কার্যালয়ে তাকে ফুলেল শুভেচ্ছা জানানো হয় এবং কেক কাটা হয়। এসময় মেহেদী রুমী দৈনিক হাওয়া পরিবারের সাথে সংশি¬ষ্ট সবাইকে ধন্যবাদ জানান। এসময় উপস্থিত ছিলেন দৈনিক হাওয়া পত্রিকার সম্পাদক আব্দুর রাজ্জাক বাচ্চু, নির্বাহী সম্পাদক অধ্যাপক শেহাব উদ্দিন, বার্তা সম্পাদক আব্দুম মুনিব, নিজস্ব প্রতিনিধি রাকিবুল ইসলাম রাব্বী, ফটো সাংবাদিক আরিফুজ্জামান, বিজ্ঞাপন প্রতিনিধি মোকারম হোসেন মোকা, সার্কুলেশন ম্যানেজার নুরুল ইসলাম, কম্পিউটার ইনচার্জ জুয়েলসহ অনান্য সদস্যবৃন্দ। সংবাদ বিজ্ঞপ্তি

ভরিতে স্বর্ণের দাম কমলো ২ হাজার ৪৪৯ টাকা

ঢাকা অফিস ॥ ভরিতে স্বর্ণের দাম দুই হাজার ৪৪৯ টাকা কমিয়ে নতুন মূল্য নির্ধারণ করেছে বাংলাদেশ জুয়েলার্স সমিতি (বাজুস)। ফলে দেশের বাজারে ভালো মানের স্বর্ণের ভরির দাম কমে ৭৪ হাজার ৮ টাকায় দাঁড়িয়েছে। গতকাল বৃহস্পতিবার এক বিজ্ঞপ্তিতে এ তথ্য জানিয়েছে বাজুস। গতকাল বৃহস্পতিবার থেকে স্বর্ণের এ নতুন দর কার্যকর হবে। বাজুসের বিজ্ঞপ্তিতে বলা হয়েছে, আন্তর্জাতিক বাজারে স্বর্ণের মূল্য কিছুটা হ্রাস পাওয়ায় ক্রেতা সাধারণের কথা চিন্তা করে বাজুসের সিদ্ধান্ত মোতাবেক ২৪ সেপ্টেম্বর (গতকাল বৃহস্পতিবার) থেকে বাংলাদেশের বাজারে স্বর্ণ ও রৌপ্য অলঙ্কারের মূল্য নির্ধারণ করা হয়েছে। ২৪ সেপ্টেম্বর থেকে ভালো মানের অর্থাৎ ২২ ক্যারেটের প্রতি ভরি (১১ দশমিক ৬৬৪ গ্রাম) স্বর্ণের দাম দুই হাজার ৪৪৯ টাকা কমিয়ে নির্ধারণ করা হয়েছে ৭৪ হাজার ৮ টাকা। ২১ ক্যারেটের স্বর্ণ ভরি ৭০ হাজার ৮৫৯ টাকা, ১৮ ক্যারেটের স্বর্ণ ভরি ৬২ হাজার ১১১ টাকা ও সনাতন পদ্ধতির প্রতি ভরি স্বর্ণ ৫১ হাজার ৭৮৮ টাকা নির্ধারণ করা হয়েছে। তবে রুপার দাম পূর্বের নির্ধারিত ৯৩৩ টাকাই বহাল রয়েছে। ক্যাটাগরি অনুযায়ী ২২ ক্যারেটের প্রতি ভরি রুপার মূল্য নির্ধারণ করা হয়েছে ১৫১৬ টাকা। ২১ ক্যারেটের রুপার দাম ১৪৩৫ টাকা, ১৮ ক্যারেটের ১২২৫ টাকা এবং সনাতন পদ্ধতির রুপার দাম ৯৩৩ টাকা নির্ধারণ করা হয়েছে। এর আগে গত ১৮ সেপ্টেম্বর প্রতি ভরিতে দুই হাজার ৪৪৯ টাকা বাড়িয়েছিল বাজুস। তার আগে গত ১৩ ও ২১ আগস্ট স্বর্ণের দাম কমিয়েছিল বাজুস। ১৮ সেপ্টেম্বর নির্ধারিত দাম অনুযায়ী গত বুধবার পর্যন্ত ২২ ক্যারেটের প্রতি ভরি ৭৬ হাজার ৪৫৮ টাকা, ২১ ক্যারেটের স্বর্ণ ৭৩ হাজার ৩০৮ টাকা, ১৮ ক্যারেটের স্বর্ণ ৬৪ হাজার ৫৬০ টাকা ও সনাতন পদ্ধতির প্রতি ভরি স্বর্ণ ৫৪ হাজার ২৩৮ টাকায় বিক্রি হয়েছে।

ঝিনাইদহে ফেন্সিডিলসহ ৩ মাদক ব্যবসায়ী আটক

ঝিনাইদহ প্রতিনিধি ॥ ঝিনাইদহের মহেশপুরে প্রাইভেটকার ভর্তি বিপুল পরিমান ফেন্সিডিলসহ ৩ মাদক ব্যবসায়ীকে আটক করেছে পুলিশ। বৃহস্পতিবার ভোর রাতে তাদের আটক করা হয়। প্রাইভেট কার থেকে বস্তা ভর্তি অবস্থায় ৫৮৫ বোতল ফেন্সিডিল উদ্ধার করা হয়েছে। পুলিশ জানায়, মহেশপুরের খালিশপুর-কালীগঞ্জগামী মহাসড়কের কাকিলাদাড়ী নামক স্থানে পুলিশ বক্সের সামনে পাঁকা রাস্তার উপর মাদক বিরোধী অভিযান পরিচালনা করা হয়। বৃহস্পতিবার ভোর রাতে গোপন সংবাদের ভিত্তিতে একটি সাদা রঙের প্রাইভেট কারে তল্লাশী করে ৫৮৫ বোতল ফেন্সিডিল উদ্ধার করা হয়। এসময় প্রাইভেট কারে থাকা ৩ মাদক ব্যবসায়ীকে আটক করা হয় ও গাড়ীটি জব্দ করা হয়েছে। আটককৃত মাদক ব্যবসায়ীরা হলো, নরসিংদী জেলার মাধবদী উপজেলার নোয়াকান্দি গ্রামের মৃত নবর আলীর ছেলে হানিফ মিয়া (৪৮), মুন্সিগঞ্জ জেলার টংগীবাড়ী উপজেলার দপ্তরীবাড়ী চাঙ্গুরী গ্রামের রহমত আলী ভান্ডারীর ছেলে শফিকুল ইসলাম (৩০) ও নারায়নগঞ্জ জেলার সিদ্ধিরগঞ্জ উপজেলার ঝালকুড়ি দক্ষিনপাড়া গ্রামের মৃত সাদিকুর রহমান ফজলুর ছেলে ফারুক হোসেন দিপু (৩৪)। মহেশপুর থানার অফিসার ইনচার্জ সাইফুল ইসলাম জানান, পুলিশ সুপার মুনতাসিরুল ইসলামের নির্দেশনায় মাদক বিরোধী অভিযান পরিচালনা করা হয়। গোপন সংবাদের ভিত্তিতে মহেশপুর থানার এসআই হায়াৎ মাহমুদ ও রাকিবুল ইসলাম এবং এএসআই সজল মন্ডল ও রওশন আলীসহ সঙ্গীয় ফোর্স নিয়ে মাদক বিরোধী অভিযান পরিচালনা করা হয়।

কুষ্টিয়া কুমারখালীতে যৌতুকের দাবিতে স্ত্রীকে হত্যার অভিযোগ

কুমারখালী প্রতিনিধি ॥ যৌতুকের দাবিতে কুষ্টিয়ার কুমারখালীতে স্ত্রীকে পিটিয়ে হত্যার অভিযোগ উঠেছে স্বামীর বিরুদ্ধে। এ ঘটনায় অভিযুক্ত স্বামী নিশান পলাতক রয়েছে। জানা গেছে, বুধবার রাতে উপজেলার নন্দলালপুর ইউনিয়নের হাবাসপুর বিশ্বাসপাড়া গ্রামের চাঁদনী খাতুন (২১) নামে ওই গৃহবধূকে বেধড়ক মারপিট করে স্বামী আসাদুজ্জামান নিশান । এতে ঘটনাস্থলেই সে জ্ঞান হারায় পরে তার স্বামী নিশানসহ পরিবারের সদস্যদের সহযোগীতায় বেধড়ক মারপিট ও শ^াসরোধ করে গৃহবধূর মৃত্যু নিশ্চিত করে। এ ঘটনায় নিহতের বাবা জানায়, আমার মেয়েকে জোরপূর্বক তিন বছর আগে বিয়ে করে। তাদের ঘরে আট মাসের এক পুত্র সন্তান রয়েছে। তিনি আরো জানান বিয়ের পর থেকে আমার মেয়েকে যৌতুকের দাবীতে প্রায়ই মারধর করতো।

কুমারখালী থানার ওসি মজিবর রহমান জানান, নিহতের শরীরের বিভিন্ন স্থানে আঘাতের চিহ্ন রয়েছে। শারীরিক নির্যাতনে তার মৃত্যু হয়েছে বলে প্রাথমিকভাবে ধারণা করছি। মৃতদেহ উদ্ধার করে ময়নাতদন্তের জন্য কুষ্টিয়া মেডিকেল হাসপাতালের মর্গে পাঠানো হয়। সেখানে তার ময়নাতদন্ত সম্পন্ন করে বাবার গ্রামের বাড়ীতে দাফন করা হয়। এদিকে নিহতের বাবা বাদী হয়ে  ৪ জনের বিরুদ্ধে নারী ও শিশু দমন আইন ১১/৫ ধারায় মামলা দায়ের করেন। মামলা নং-২০, অভিযুক্ত স্বামী আসাদুজ্জামান নিশানসহ আসামীদের ধরতে পুলিশী অভিযান অব্যাহত রয়েছে।

সৌদি-ওমানের সব ফ্লাইট চালু হবে ১ অক্টোবর – পররাষ্ট্রমন্ত্রী

ঢাকা অফিস ॥ সৌদি আরব ও ওমানগামী বাতিল হওয়া সব রুটের ফ্লাইট ১ অক্টোবর থেকে চালু হবে বলে জানিয়েছেন পররাষ্ট্রমন্ত্রী এ কে আবদুল মোমেন। এতে অপেক্ষারত প্রবাসীরা দেশ দুটিতে পৌঁছে কাজে যোগ দিতে পারবেন। তবে পিসিআর টেস্টের রিপোর্ট থাকতে হবে এবং পৌঁছে ১৪ দিন কোয়ারেন্টাইনে থাকতে হবে। গতকাল বৃহস্পতিবার নিজ দফতরে সাংবাদিকদের এসব তথ্য জানান মন্ত্রী। পররাষ্ট্রমন্ত্রী বলেন, সৌদি আরবে কাজে যোগদানের বিষয়ে যে উৎকণ্ঠা সৃষ্টি হয়েছিল, আমরা আশা করছি, তার সুষ্ঠু সমাধান হয়েছে। এরপরও আমরা বিষয়টি নিয়ে কাজ করছি। প্রধানমন্ত্রী প্রবাসীদের সুযোগ-সুবিধা দেয়ার বিষয়ে আগ্রহী জানিয়ে মন্ত্রী বলেন, বর্তমান সরকার প্রবাসীদের বিষয়ে বরাবরই আন্তরিক হয়ে কাজ করছে। পররাষ্ট্র মন্ত্রণালয়ের চিঠির পরিপ্রেক্ষিতে এরইমধ্যে চতুর্থ দফায় আরও ২৪ দিন প্রবাসীদের আকামার মেয়াদ বাড়িয়েছে সৌদি সরকার। ফ্লাইট পরিচালনার জন্য বাংলাদেশকে ল্যান্ডিং পারমিশনও দেয়া হয়েছে। ফলে এরইমধ্যে যেসব প্রবাসী সৌদি থেকে রিটার্ন টিকিটে বাংলাদেশে এসে লকডাউনের কারণে আর ফিরতে পারেননি, তাদেরকে সৌদি ফেরাতে দুটি বিশেষ ফ্লাইট চালুর ঘোষণা করেছে বিমান বাংলাদেশ এয়ারলাইনস। আগামী ২৬ ও ২৭ সেপ্টেম্বর বিমানের বিশেষ এই ফ্লাইট দুইটি চালু হবে। সৌদিতে অবস্থানরত রোহিঙ্গাদের পাসপোর্ট: সৌদিতে অবস্থান করা কোনো রোহিঙ্গার যদি আগে বাংলাদেশি পাসপোর্ট থেকে থাকে তাহলেই সেটা পুনরায় ইস্যু করা হবে বলে জানান পররাষ্ট্রমন্ত্রী ড. এ কে আবদুল মোমেন। তবে যাদের কোনো বাংলাদেশি পাসপোর্ট নেই, তাদেরটা পুনরায় ইস্যু হবে না বলে জানান তিনি। পররাষ্ট্রমন্ত্রী ড. এ কে আবদুল মোমেন বলেন, আশির দশকে বাংলাদেশ থেকে অনেক রোহিঙ্গা নিয়ে গিয়েছিল সৌদি আরব। এখন সেসব রোহিঙ্গাদের কোনো ডকুমেন্ট নেই। তাদের ছেলেমেয়েরা সেখানেই জন্ম নিয়েছে। সেখানেই বেড়ে উঠেছে। তারা বাংলাও জানে না। সৌদি সরকার তাদের জন্য পাসপোর্ট দিতে আমাদের অনুরোধ করেছে। কেননা সৌদি আরব তার দেশে কোনো রাষ্ট্রহীন লোক রাখে না। তিনি বলেন, আমরা সৌদি আরবকে জানিয়েছি কোনো রোহিঙ্গার বাংলাদেশি পাসপোর্ট থেকে থাকলেই আমরা সেটা পুনরায় ইস্যু করতে পারি, অন্যথায় নয়। তবে সৌদি আরব জানিয়েছে, পাসপোর্ট ইস্যু না করা মানেই তাদের বাংলাদেশে ফেরত পাঠানো নয়। ড. মোমেন বলেন, সৌদি আরবের জেলে ৪৬২ জন রোহিঙ্গা আছেন। আমরা মিশন থেকে যাচাই-বাছাই করে দেখেছি, তাদের মধ্যে ৭০- ৮০ জনের বাংলাদেশের পাসপোর্ট আছে। তাই কেবল এই পাসপোর্টধারীদেরই ফেরত আনা যেতে পারে। সৌদি থেকে রোহিঙ্গাদের ফেরত না আনলে বাংলাদেশের প্রবাসীদের ফেরত পাঠানো হবে- এ বিষয়ে জানতে চাইলে ড. মোমেন বলেন, এটা দুষ্টু লোকজন প্রচার করছে, এটা ঠিক নয়।

 

খালেদাকে মুক্ত করতে পারলেই গণতন্ত্র মুক্ত হবে – গয়েশ্বর

ঢাকা অফিস ॥ সাবেক প্রধানমন্ত্রী খালেদা জিয়াকে মুক্ত করতে পারলেই গণতন্ত্র ফিরে আসবে বলে মন্তব্য করেছেন বিএনপির স্থায়ী কমিটির সদস্য গয়েশ্বর চন্দ্র রায়। গতকাল বৃহস্পতিবার দুপুরে নয়াপল্টনে বিএনপির কেন্দ্রীয় কার্যালয়ে জিয়াউর রহমান সমাজ কল্যাণ পরিষদের উদ্যোগে এমাজউদ্দীন আহমদ, শফিউল বারী বাবু, আবদুল আউয়াল খান, আবদুল কাইয়ুম, আনোয়ার হোসেন, দীন মোহাম্মদ কাশেমী, মোহাম্মদ হানিফসহ নিহত নেতাদের স্মরণে আলোচনাসভা ও দোয়া মাহফিলে এ কথা বলেন তিনি। গয়েশ্বর বলেন, আমাদের মূল লক্ষ্য কী? এই অন্যায়-অত্যাচার, এই স্বৈরতান্ত্রিক সরকারের হাত থেকে দেশটাকে বাঁচানো, স্বাধীনতা-সার্বভৌমত্বকে রক্ষা করা। এরজন্য একটা জাতীয় ঐক্য দরকার। খালেদা জিয়ার কারাবন্দি থেকে গৃহবন্দিতে প্রমোশন হয়েছে মন্তব্য করে বিএনপির এই সিনিয়র নেতা বলেন, নেত্রী যখন গৃহবন্দি থাকেন তখন আপনার-আমার উচ্ছ্বাস মানায় না। গণতন্ত্র পুনরুদ্ধারে মান-অভিমান ভুলে সবাইকে আন্দোলনের জন্য প্রস্তুতি নেওয়ারও আহ্বান জানান তিনি। সংগঠনের সভাপতি এম গিয়াস উদ্দিনের সভাপতিত্বে আলোচনা সভায় স্বেচ্ছাসেবক দল নেতা ফখরুল ইসলাম রবিন, একেএম আবুল কালাম আজাদ, মৎস্যজীবী দলের সদস্য সচিব আবদুর রহিম প্রমুখ বক্তব্য রাখেন।

মহামারী করোনা মোকাবেলায় সাধারণ মানুষের জন্য কাজ করে যাচ্ছে সেনাবাহিনী

মহামারী করোনা প্রতিরোধে প্রতিনিয়ত কাজ করে যাচ্ছে বাংলাদেশ সেনাবাহিনীর ৫৫ পদাতিক ডিভিশন। করোনা সংকটকালীন পরিস্থিতি স্বাভাবিক না হওয়া পর্যন্ত স্বল্প আয়ের মানুষের পাশে থাকার অঙ্গীকারবদ্ধ সেনাসদস্যরা। সেই অঙ্গীকারের অংশ হিসেবে সেনাবাহিনীর নিজস্ব উদ্যোগে  দেশের প্রত্যন্ত অঞ্চলের কর্মহীন গরিব ও দুস্থদের বাঁচিয়ে রাখতে নিত্যপণ্য এবং ঔষধ সামগ্রী বিতরণের কর্মযজ্ঞ চালিয়ে যাচ্ছে। এছাড়াও হাটবাজার ও বিভিন্ন দোকানপাট, বিপণী বিতানগুলোতে লিফলেট বিতরণ ও মাইকিং করে করোনা সংক্রমণের বিষয়ে মানুষকে সচেতন করার কার্যক্রম অব্যাহত রাখার পাশাপাশি স্বাস্থ্যবিধি সংক্রান্ত নীতিমালা বাস্তবায়ন, গণপরিবহণ চলাচল নিয়ন্ত্রণ, সামাজিক দূরত্ব বজায় রাখা, মাস্ক ব্যবহারে উৎসাহিত করাসহ নানাবিধ জনকল্যাণমূলক কার্যক্রম অব্যাহত রেখেছে যশোর  সেনানিবাসের সেনাসদস্যরা। অন্যদিকে খুলনা উপকূলীয় এলাকায় সেনাবাহিনীর তত্ত্বাবধানে দ্রুত গতিতে এগিয়ে চলছে বাঁধ নির্মানের কাজ। এছাড়াও বৃহত্তর যশোর অঞ্চলের বন্যা কবলিত পানিবন্দী মানুষের মাঝে খাবার পানি বিতরণ কার্যক্রম অব্যাহত রেখেছে যশোর সেনানিবাসের  সেনাসদস্যরা। সংবাদ বিজ্ঞপ্তি

দৌলতপুর সীমান্তে মদ ও ফেনসিডিল উদ্ধার

দৌলতপুর প্রতিনিধি ॥ কুষ্টিয়ার দৌলতপুর সীমান্তে বিজিবি’র পৃথক অভিযানে ৮১ বোতল মদ ও ৫৬ বোতল ফেনসিডিল উদ্ধার হয়েছে। বুধবার রাতে উপজেলার বিভিন্ন সীমান্তে অভিযান চালিয়ে এসব মাদক উদ্ধার করে বিজিবি। বিজিবি সূত্র জানায়, মাদক পাচারের গোপন সংবাদ পেয়ে ৪৭ বিজিবি ব্যাটালিয়ন অধিনস্থ মহিষকুন্ডি বিওপি’র টহল দল বুধবার দিবাগত রাত সোয়া ৩টার দিকে পাকুড়িয়া ভাঙ্গাপাড়া ব্রীজের পাশে অভিযান চালিয়ে ৫৬ বোতল ফেনসিডিল উদ্ধার করেছে। একইদিন রাত পৌনে ১টার দিকে জামালপুর বিওপি’র টহল দল জামালপুর কান্দিরপাড়া এলাকায় অভিযান চালিয়ে ৩০ বোতল বেষ্ট মদ উদ্ধার করেছে। এছাড়াও বুধবার রাত ৭টার দিকে প্রাগপুর বিওপি’র টহল দল বিলগাথুয়া পাকা রাস্তায় অভিযান চালিয়ে ২১ বোতল বেঙ্গল টাইগার মদ উদ্ধার করেছে। একইদিন রাত সাড়ে ১০টার দিকে তেতুলবাড়িয়া বিওপি’র টহল দল তেতুলবাড়িয়া মাঠে অভিযান চালিয়ে ৩০ বোতল মদ উদ্ধার করেছে। তবে উদ্ধার হওয়া এসব মাদকের সাথে জড়িত কেউ আটক হয়নি বলে বিজিবি সূত্র নিশ্চিত করেছে।

ভেনিস সিটি করপোরেশন নির্বাচনে কাউন্সিলর পদে বাংলাদেশির জয়

ঢাকা অফিস ॥ ইতালির পর্যটননগরী ভেনিসে সিটি করপোরেশন নির্বাচনে কাউন্সিলর পদে আফাই আলী (৩২) নামের এক বাংলাদেশি জয়লাভ করেছেন। তিনি ১১০ ভোট পেয়ে এই পদে নির্বাচিত হন। তিনি বর্তমান ক্ষমতাসীন দলের শরিক বামপন্থী ডেমোক্রেটিক পার্টির (পিডি) হয়ে এই নির্বাচনে অংশগ্রহণ করেন। গত ২০ ও ২১ সেপ্টেম্বর দুইদিন ধরে এই নির্বাচন অনুষ্ঠিত হয়। গত বুধবার ফলাফল ঘোষণা করা হয়। প্রথমবারের মতো কোনো বাংলাদেশি মূলধারার রাজনীতিতে এসে জয়লাভ করে ইতালিতে একটি দৃষ্টান্ত স্থাপন করলেন। এ নির্বাচনে আরও দুই বাংলাদেশি অংশগ্রহণ করেন। তারা হলেন মানোয়ার ক্লার্ক ও হুমায়ুন আব্দুল। জানা গেছে, তারা অল্প ভোটের ব্যবধানে জয়লাভ করতে পারেননি। প্রবাসীরা বলছেন এ বিজয় শুধু আফাইয়ের নয় গোটা বাংলাদেশের। তার বিজয়ের মাধ্যমে বাংলাদেশকে গর্বের সঙ্গে উপস্থাপন করা হয়েছে। এ প্রসঙ্গে প্রার্থী মনোয়ার ক্লার্ক তার অনুভূতি ব্যক্ত করে বলেন, আমাকে বিশ্বাস ও স্নেহ করার জন্য সবার প্রতি ধন্যবাদ। এই নির্বাচনের মাধ্যমে অনেক অভিজ্ঞতা এবং অনেক মানুষকে চেনাজানা হলো যারা শুরু থেকে শেষ পর্যন্ত সমর্থন করেছেন। বাংলাদেশি বংশদ্ভূত ইটালিয়ান নাগরিকদের স্থানীয় নির্বাচনে অংশগ্রহণ শুরু হয় মূলত ২০১৫ সাল থেকে। আর ২০২০ সালের এই সিটি করপোরেশন নির্বাচনে আফাই জয়লাভ করে তাক লাগিয়ে দিলেন স্থানীয় নাগরিকদের। ভোটে জয়যুক্ত আফাই আলীর বাড়ি কিশোরগঞ্জের অষ্টগ্রাম উপজেলার আব্দুল্লাহপুরে। ফলাফল ঘোষণার পর প্রবাসী বাংলাদেশিরা সদ্যবিজয়ী আফাই আলীকে শুভেচ্ছা জানিয়েছেন।

পাপিয়া দম্পতির যাবজ্জীবন কারাদন্ড চায় রাষ্ট্রপক্ষ

ঢাকা অফিস ॥ নরসিংদী জেলা যুব মহিলা লীগের বহিষ্কৃত সাধারণ সম্পাদক শামীমা নূর পাপিয়া ও তার স্বামী মফিজুর রহমানের বিরুদ্ধে অস্ত্র আইনে করা মামলায় তাদের যাবজ্জীবন কারাদন্ড প্রত্যাশা করছেন রাষ্ট্রপক্ষ। গতকাল বৃহস্পতিবার ঢাকা মহানগর দায়রা জজ কে এম ইমরুল কায়েশের আদালতে রাষ্ট্রপক্ষ মামলার যুক্তি উপস্থাপন শেষ করেন। এ সময় ঢাকা মহানগর পাবলিক প্রসিকিউটর (পিপি) আব্দুল্লাহ আবু বলেন, মামলার সাক্ষ্য-প্রমাণে আসামিদের বিরুদ্ধে আমরা অভিযোগ প্রমাণ করতে সক্ষম হয়েছি। আশা করছি, রায়ে আসামিদের সর্বোচ্চ শাস্তি যাবজ্জীবন কারাদন্ড হবে। রাষ্ট্রপক্ষের যুক্তি উপস্থাপন শেষে পাপিয়ার স্বামী মফিজুরের পক্ষে যুক্তি উপস্থাপন করেন তার আইনজীবী। তিনি তার খালাস প্রত্যাশা করেন। এরপর পাপিয়ার পক্ষে যুক্তি উপস্থাপন শুরু করেন তার আইনজীবী। তবে তার পক্ষে যুক্তি উপস্থাপন শেষ না হওয়ায় রোববার পরবর্তী দিন ধার্য করেন আদালত। এ মামলায় ১২ সাক্ষীর মধ্যে ১২ জনই আদালতে সাক্ষ্য দিয়েছেন। গত ২৯ জুন ঢাকা মহানগর হাকিম আদালতে মামলার তদন্ত কর্মকর্তা র‌্যাবের উপপরিদর্শক আরিফুজ্জামান আদালতে তাদের বিরুদ্ধে এ চার্জশিট দাখিল করেন। চার্জশিটে সাক্ষী করা হয়েছে ১২ জনকে। গত ২২ ফেব্রুয়ারি হযরত শাহজালাল আন্তর্জাতিক বিমানবন্দর থেকে দেশত্যাগের সময় পাপিয়াসহ চারজনকে গ্রেফতার করে র‌্যাব। গ্রেফতার অন্যরা হলেন-পাপিয়ার স্বামী মফিজুর রহমান ওরফে সুমন চৌধুরী ওরফে মতি সুমন (৩৮), সাব্বির খন্দকার (২৯) ও শেখ তায়্যিবা (২২)। তাদের কাছ থেকে সাতটি পাসপোর্ট, নগদ দুই লাখ ১২ হাজার ২৭০ টাকা, ২৫ হাজার ৬০০ টাকার জাল মুদ্রা, ১১ হাজার ৯১ ইউএস ডলারসহ বিভিন্ন দেশের মুদ্রা জব্দ করা হয়। গ্রেফতারের পর ওইদিন রাতেই নরসিংদীর বাসায় এবং ২৩ ফেব্র“য়ারি ভোরে হোটেল ওয়েস্টিনে তাদের নামে বুকিং করা বিলাসবহুল প্রেসিডেন্সিয়াল স্যুটে অভিযান চালানো হয়। এ ছাড়া ফার্মগেট এলাকার ২৮ নম্বর ইন্দিরা রোডে অবস্থিত রওশন’স ডমিনো রিলিভো নামক বিলাসবহুল ভবনে তাদের দুটি ফ্ল্যাটে অভিযান চালিয়ে একটি বিদেশি পিস্তল, দুটি পিস্তলের ম্যাগজিন, ২০ রাউন্ড পিস্তলের গুলি, পাঁচ বোতল বিদেশি মদ ও নগদ ৫৮ লাখ ৪১ হাজার টাকা, পাঁচটি পাসপোর্ট, তিনটি চেক, বিদেশি মুদ্রা, বিভিন্ন ব্যাংকের ১০টি ভিসা ও এটিএম কার্ড জব্দ করে র‌্যাব। ওই ঘটনায় শেরেবাংলা নগর থানায় অস্ত্র আইনে একটি, বিশেষ ক্ষমতা আইনে একটি এবং বিমানবন্দর থানায় বিশেষ ক্ষমতা আইনে আরেকটি মামলা করা হয়।

আহ্বান করা হয়নি দরপত্র

কুমারখালী পৌরসভার পাঁচটি উন্নয়ন কাজে অনিয়মের অভিযোগ

বিশেষ প্রতিনিধি ॥ কুষ্টিয়ার কুমারখালী পৌরসভার পাঁচটি উন্নয়ন কাজে অনিয়মের অভিযোগ উঠেছে। এসব কাজ বাস্তবায়নে কত টাকা খরচ হয়েছে, তা কেউ জানেন না। পৌরসভার মেয়র শামসুজ্জামান অরুণের তত্ত্বাবধানে কাজগুলো করা হয়েছে। কিন্তু এসব কাজের জন্য ছিল না কোনো প্রকল্প, আহ্বান করা হয়নি দরপত্রও। কোন খাত থেকে অর্থ ব্যয় করা হয়েছে, সে বিষয়েও জানেন না পৌরসভার কাউন্সিলররা।

কাউন্সিলরদের অভিযোগ, মেয়র একা তদারকি করে এসব কাজ করেছেন। সাধারণত সরকারি উন্নয়ন কাজের ক্ষেত্রে সভা করে রেজ্যুলেশন, দরপত্র আহ্বান ও ঠিকাদার নিয়োগ করার বিধান থাকলেও ওই পাঁচ কাজের ক্ষেত্রে এসব কিছুই মানা হয়নি।

কয়েকজন কাউন্সিলর ও প্রকৌশলীর কার্যালয় সূত্রে জানা গেছে, পাঁচটি কাজের মধ্যে আছে কুমারখালী থানার সৌন্দর্যবর্ধন, পৌর বাস টার্মিনালের সংস্কার,  সেরকান্দি এলাকায় ১০০ মিটার সিসি সড়ক নির্মাণ, কুন্ডুপাড়ায় ফরিদ আহমেদ কমিশনারের বাড়ির সামনে সিসি সড়ক নির্মাণ এবং এলঙ্গী এলাকায় মাথাভাঙা মন্দিরের ছাদ নির্মাণ ও সংস্কার।

নাম প্রকাশে অনিচ্ছুক একজন কাউন্সিলর অভিযোগ করেন, মেয়র শামসুজ্জামান অরুণ ও সার্ভেয়ার ফিরোজুল ইসলাম মিলে সব কটি কাজ শেষ করেছেন।  কোনো কাউন্সিলর কিছু বলার সাহস পাননি। মেয়র শামসুজ্জামান অরুণ কুমারখালী উপজেলা আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক।

কুমারখালী থানার ফটকের পাশে ফোয়ারা, স্যালুট ডায়াস ও পার্ক নির্মাণ করে  সৌন্দর্যবর্ধন করা হয়েছে। এসব কাজের বিষয়ে ১০ সেপ্টেম্বর ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) মজিবুর রহমান জানান, গত এপ্রিল-মে মাসে এই কাজ করা হয়। ফোয়ারার পাশে একটি দৃষ্টিনন্দন ফটকও করা হবে। মেয়র নিজে কাজগুলো করে দিয়েছেন। কাজের কোনো কাগজপত্রের অনুলিপি থানায় আছে কি না, জানতে চাইলে ওসি বলেন, কোনো ঠিকাদার ছিলেন না। মেয়র সব জানেন। পুলিশের অর্থায়নেও কোনো কাজ করা হয়নি বা হচ্ছে না।

কুমারখালী বাস টার্মিনালে গিয়ে দেখা যায়, টার্মিনালের ঠিক পেছনে গাড়ির র‌্যাম্প তৈরি করা হয়েছে। কয়েকটি দোকানও সংস্কার করা হয়। র‌্যাম্পের ওপর দুটি মাইক্রোবাস দাঁড় করানো। চালকেরা জানান, কয়েক মাস আগে পৌরসভা  থেকে এসব কাজ করে দেওয়া হয়েছে।

কুন্ডুপাড়া এলাকায় ফরিদ আহমেদের বাড়ির সামনে সিসি সড়কের পাশে বসার জন্য টাইলস লাগানো আসনও তৈরি করা হয়েছে। সড়কটি অন্তত ১০০ মিটার দীর্ঘ। স্থানীয় বাসিন্দা বদরুল বলেন, আগস্টে এ সড়ক পৌরসভা নির্মাণ করে দিয়েছে। পৌরসভার পাশে সেরকান্দি এলাকায় একইভাবে একই সময়ে সিসি সড়ক নির্মাণ করা হয়েছে।

পাঁচটি কাজ নিয়ে ওঠা অভিযোগের বিষয়ে জানতে ১০ সেপ্টেম্বর দুপুরে  পৌরসভায় গিয়ে মেয়র শামসুজ্জামান অরুণকে পাওয়া যায়নি। প্রকৌশলীর দপ্তরের সার্ভেয়ার ফিরোজুল ইসলাম বলেন, ‘কোনো কাজেরই এখনো দরপত্র হয়নি। অচিরেই দরপত্র আহ্বান করা হবে। এর বেশি কিছু জানতে চাইলে  মেয়র মহোদয়ের সঙ্গে কথা বলতে হবে। তিনিই সব জানেন।’

পরে মোবাইলফোনে মেয়র শামসুজ্জামান অরুণ বলেন, থানার কাজের দরপত্রের জন্য পত্রিকায় বিজ্ঞাপন পাঠানো হয়েছে। কত টাকার কাজ, সেটা জানা  নেই। বাকি চারটি কাজের দরপত্র আগেই করা হয়েছে। ঠিকাদার কারা ছিলেন, সেটা প্রকৌশলীর কার্যালয় বলতে পারবে। সার্ভেয়ার ফিরোজুল ইসলামের দেওয়া বক্তব্যের ব্যাপারে মেয়র বলেন, ‘ও কিছু জানে না।’

পৌরসভার নির্বাহী প্রকৌশলীর পদ শূন্য। সহকারী প্রকৌশলীর পদে অতিরিক্ত দায়িত্ব পালন করছেন খোকসা পৌরসভার সহকারী প্রকৌশলী আকরামুজ্জামান। পাঁচটি উন্নয়ন কাজের বিষয়ে তিনি বলেন, থানার ভেতর ও বাসস্ট্যান্ডের কাজের কোনো টেন্ডার হয়নি। বাকি তিনটি কাজ তাঁর অজানা।

প্রকল্প প্রস্তাবনা ও দরপত্রের আগেই কাজ শেষ হতে পারে কি না, জানতে চাইলে স্থানীয় সরকারের উপ-পরিচালক মৃণাল কান্তি দে বলেন, প্রতিটি কাজের জন্য সভা করে রেজ্যুলেশন, দরপত্র আহ্বান ও ঠিকাদার নিয়োগ করার বিধান রয়েছে। দরপত্র ও ঠিকাদার ছাড়া কোনো কাজ হতেই পারে না। এটা অসম্ভব। যদি না করা হয়ে থাকে, সেটা বিধি অনুযায়ী কাজ হতে পারে না।

ষড়যন্ত্র বিএনপির রাজনৈতিক দর্শন – ওবায়দুল কাদের

ঢাকা অফিস ॥ আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক, সড়ক পরিবহন ও সেতুমন্ত্রী ওবায়দুল কাদের বিএনপির সমালোচনা করে বলেছেন, বিএনপি নেতারা বিদেশে বসে সরকার পতনের জন্য ষড়যন্ত্র করে, আবার দেশে নির্বাচনে অংশগ্রহণের কথা বলে। এতে তাদের দ্বিচারিতা এবং ষড়যন্ত্রের রাজনীতি স্পষ্ট হয়ে ওঠে। তিনি বলেন, ষড়যন্ত্র বিএনপির রাজনৈতিক দর্শন। গতকাল বৃহস্পতিবার সকালে ক্রসবর্ডার রোড নেটওয়ার্ক উন্নয়ন প্রকল্পের অগ্রগতি পর্যালোচনা সভায় এসব কথা বলেন তিনি। ভিডিও কনফারেন্সের মাধ্যমে এ সভায় যুক্ত হন কাদের। ওবায়দুল কাদের বলেন, বিএনপি নেতারা কখনো জেদ্দা, কখনও আবুধাবি আবার কখনও লন্ডনে বসে গোপন বৈঠক করুক না কেন, সব খবরই সরকারের কাছে আছে। গোপন বৈঠক আর ষড়যন্ত্র করে লাভ নেই, রাজনীতি করতে হবে জনগণের জন্য। বিএনপি নেতাদের উদ্দেশে তিনি বলেন, সরকার পরিবর্তন করতে চাইলে জনমানুষের কাছে আসুন, বিদেশি শক্তি বা কোনো সংস্থার কাছে নয়। করোনা ভাইরাস প্রসঙ্গে কথা বলতে গিয়ে মন্ত্রী বলেন, করোনার ভ্যাকসিন আসছে ভেবে স্বাস্থ্যবিধি মেনে চলার ক্ষেত্রে অনেকেরই গা-ছাড়া ভাব দেখা দিয়েছে, অবহেলা করছেন এবং মাস্ক পরিধান করছে না। সবাইকে সতর্ক করে দিয়ে তিনি বলেন, করোনার কার্যকর ভ্যাকসিন কবে আসবে তা এখনও সুনিশ্চিত নয়। স্বাস্থ্যবিধি মেনে চলা এবং মাস্ক পরাই সবচেয়ে বড় প্রতিষেধক। করোনার সংক্রমণ রোধে সচেতনাই হচ্ছে উত্তম ভ্যাকসিন। সড়ক পরিবহন ও সেতুমন্ত্রী ওবায়দুল কাদের বলেন, প্রায় ৭শ মিটার দীর্ঘ কালনা সেতুটি অত্যন্ত গুরুত্বপূর্ণ সেতু। মধুমতি নদীর দুপাড়ের মাঝে সেতুবন্ধ তৈরি ছাড়াও কালনা সেতুটি পদ্মা সেতুর সাথে সংযুক্ত। বিধায় পদ্মা সেতুর সুবিধা পেতে হলে কালনা সেতুর নির্মাণ কাজ শেষ করা জরুরি। ইতোমধ্যেই কালনা সেতুর শতকরা ৩৫ ভাগ কাজ শেষ হয়েছে। পদ্মা সেতুর কাজের সাথে সমন্বয় রেখে কালনা সেতুর নির্মাণ কাজ আরো দ্রুত এগিয়ে নিতে সংশ্লিষ্টদের নির্দেশ দেন মন্ত্রী। ভিডিও কনফারেন্সে আরও যুক্ত ছিলেন- সড়ক পরিবহন ও মহাসড়ক বিভাগের অতিরিক্ত সচিব, সড়ক ও জনপথ অধিদফতরের প্রধান প্রকৌশলী, প্রকল্প পরিচালকসহ মন্ত্রণালয়ের ঊর্ধ্বতন কর্মকর্তারা।

আওয়ামী লীগ দেশ পরিচালনায় ব্যর্থ হয়েছে – ফখরুল

ঢাকা অফিস ॥ ক্ষমতাসীন আওয়ামী লীগ দেশ পরিচালনায় সবক্ষেত্রে ব্যর্থ হয়েছে বলে দাবি করেছেন বিএনপি মহাসচিব মির্জা ফখরুল ইসলাম আলমগীর। গতকাল বৃহস্পতিবার গণমাধ্যমে পাঠানো এক বিবৃতিতে তিনি এসব বলেন। তিনি বলেন, আওয়ামী সরকার মানুষের ভোটের এবং গণতান্ত্রিক অধিকারকে ধ্বংসের মাধ্যমে দেশটাকে কারাগারে পরিণত করেছে। বিরামহীনভাবে বিএনপিসহ বিরোধী নেতা-কর্মীদেরকে গ্রেফতার করছে। কাল্পনিক কাহিনি বানিয়ে মামলা দায়ের করা হচ্ছে, কারান্তরীণ করা হচ্ছে। ভুয়া, বানোয়াট ও সাজানো মামলায় জাতীয়তাবাদী ছাত্রদল-সোনাগাজী উপজেলা শাখার যুগ্ম আহ্বায়ক জসিম উদ্দিনকে অসত্য মামলায় গ্রেফতার করে কারাগারে পাঠিয়েছে সরকার। সরকারের সকল অপকর্ম ও দু:শাসন রুখে দিতে জনগণ এখন আরও বেশি ঐক্যবদ্ধ। বিএনপি মহাসচিব অবিলম্বে জসিম উদ্দিনের বিরুদ্ধে রাজনৈতিক উদ্দেশ্যপ্রণোদিত মামলা প্রত্যাহার এবং নি:শর্ত মুক্তির জোর দাবি জানান।

এইচএসসি পরীক্ষা শুরুর প্রস্তুতি নেবে শিক্ষা বোর্ড

ঢাকা অফিস ॥ স্বাস্থ্যবিধি মেনে এইচএসসি ও সমমান পরীক্ষা আয়োজনের সব প্রস্তুতি চূড়ান্ত করবে শিক্ষা বোর্ডগুলো। মন্ত্রণালয় থেকে পরীক্ষা শুরুর সিদ্ধান্ত হলে পরবর্তী ১৫ দিনের মধ্যে প্রস্তুতি শুরু করতে চান শিক্ষা বোর্ডের চেয়ারম্যানরা। গতকাল বৃহস্পতিবার আন্তঃশিক্ষা সমন্বয়ক বোর্ডের সভায় উপস্থিত হয়ে বোর্ড চেয়ারম্যানরা এমন সিদ্ধান্ত নেন। সভা শেষে যশোর শিক্ষা বোর্ডের চেয়ারম্যান অধাপক মো. আবদুল আলীম বলেন, স্বাস্থ্যবিধি মেনে কী কী পদ্ধতিতে এইচএসসি ও সমমান পরীক্ষা নেয়া যেতে পারে সেসব বিষয়ে আলোচনা হয়েছে। পরীক্ষা নেয়ার জন্য প্রশ্ন ও উত্তরপত্র প্রস্তুত রয়েছে। কবে পরীক্ষা নেয়া হবে সরকার সিদ্ধান্ত ঘোষণা দিলে আমরা পরবর্তী ১৫ দিনের মধ্যে সব প্রস্তুতি শেষ করতে পারবো। তিনি আরও বলেন, এখন পাবলিক পরীক্ষা আগের মতো নেয়া সম্ভব নয়। স্বাস্থ্যবিধি মেনে এক বেঞ্চে একজন বা দুজন করে পরীক্ষার্থী বসানো হবে। পরীক্ষা কেন্দ্র স্বাস্থ্যবিধি নিশ্চিত করে এ পরীক্ষা আয়োজন করা হবে। সব শিক্ষা বোর্ডগুলোকে পরীক্ষা সংক্রান্ত প্রস্তুতি নিতে বলা হয়েছে। এদিকে সভা শেষে সাংবাদিকদের বিভিন্ন প্রশ্নের উত্তরে ঢাকা শিক্ষা বোর্ডের চেয়ারম্যান অধ্যাপক মু. জিয়াউক হক বলেন, জেএসসি পরীক্ষা বাতিল করা হলেও পরবর্তী ক্লাসে কীভাবে উত্তীর্ণ করা হবে সে বিষয়ে একটি সিদ্ধান্ত নেয়া হবে। শিক্ষার্থীদের নিজস্ব প্রক্রিয়ায় পরবর্তী ক্লাসে উন্নীত করবে। এটি করতে যাতে কোনো সমস্যা না হয় এজন্য একটি গাইডলাইন তৈরি করা হবে। সেটি অনুসরণ করে পরবর্তী ক্লাসে উন্নীত করা হবে। তিনি বলেন, স্কুলগুলোতে গত মার্চ মাস পর্যন্ত ক্লাস হয়েছে। সংসদ টিভিতে পড়ালেখা করছে, অনলাইন ক্লাস হচ্ছে। তার ওপর ভিত্তি করে মূল্যায়ন করা হবে। নভেম্বরে স্কুল খোলা সম্ভব হলে একভাবে, আর ক্লাস করানো সম্ভব না হলে সেখানে ভিন্নভাবে মূল্যায়ন করা হবে। এজন্য কিছু সময় লাগবে। যতটুকু পড়ানো হবে তার ওপর মূল্যায়ন করা হবে। ঢাকা বোর্ডের চেয়ারম্যান বলেন, যদি নভেম্বরে শিক্ষাপ্রতিষ্ঠান খোলা সম্ভব না হয়, তাহলে অষ্টম শ্রেণির শিক্ষার্থীদের পরবর্তী ক্লাসে তোলা হলেও পরবর্তী ক্লাসের সিলেবাসের সঙ্গে বাদ পড়া অতি প্রয়োজনীয় নবম শ্রেণির জন্য কিছু বিষয় যুক্ত করা হবে। তবে সেটি বাড়তি চাপ তৈরি করা হবে না। মূল্যায়ন কেমন হবে জানতে চাইলে তিনি বলেন, মূল্যায়ন যদি ‘ফেস টু ফেস’ করা সম্ভব হয় তবে সেটা একরকম হবে, তা সম্ভব না হলে যতটুকু ক্লাস করা হয়েছে তার ওপর ভিত্তি করে হবে। এখনো সুনির্দিষ্ট কোনো পদ্ধতি আমরা নিশ্চিত করতে পারছি না, পরিস্থিতি ভিত্তি করে সিদ্ধান্ত নেয়া হবে। অটো প্রমোশন বলে কিছু নেই, সবকিছু হবে মূল্যায়নের ভিত্তিতে। নিম্ন মাধ্যমিক ও মাধ্যমিক পর্যায়ে ৬ষ্ঠ, ৭ম স্তরের শিক্ষার্থীদের পরবর্তী ক্লাসে উন্নীতের জন্য মাধ্যমিক ও উচ্চশিক্ষা অধিদফতর ও জাতীয় পাঠ্যক্রম এবং পাঠ্যপুস্তক বোর্ড থেকে নির্দেশনা দেয়া হবে বলে জানান তিনি।

গৃহহীনদের খুঁজে খুঁজে ঘর করে দেবে সরকার – জনপ্রশাসন প্রতিমন্ত্রী

ঢাকা অফিস ॥ জনপ্রশাসন প্রতিমন্ত্রী ফরহাদ হোসেন বলেছেন, বাংলাদেশের কোনো মানুষ গৃহহীন অবস্থায় থাকবে না। ‘জমি আছে ঘর নেই’ প্রকল্পের আওতায় দেশের সকল নাগরিক ঘর পাবে। এ ব্যাপারে সরকারের ব্যাপক পরিকল্পনা রয়েছে। এ নিয়ে বড় অংকের অর্থ বাজেট করা হচ্ছে। আগামীতে গৃহহীনদের খুঁজে খুঁজে বের করে ঘর করে দেবে সরকার। গতকাল বৃহস্পতিবার দুপুরে মেহেরপুরের মুজিবনগর উপজেলার দারিয়াপুরে দুর্যোগ সহনীয় বাসগৃহপ্রাপ্ত সুবিধাভোগীদের পক্ষ থেকে প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনাকে ধন্যবাদ ও কৃতজ্ঞতা জ্ঞাপন অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথির বক্তব্যে প্রতিমন্ত্রী এসব কথা বলেন। তিনি আরও বলেন, বিশ্ব মহামারির সময়েও অর্থনৈতিকভাবে শক্ত অবস্থান ধরে রেখেছে বাংলাদেশ। তাই বাংলাদেশকে বিশ্বের অনেক বড় বড় রাষ্ট্র অনুসরণ করছে। মেহেরপুরের জেলা প্রশাসক ড. মুনসুর আলম খানের সভাপতিত্বে অনুষ্ঠানে পুলিশ সুপার এসএম মুরাদ আলী, জেলা আওয়ামী লীগের যুগ্ম সাধারণ সম্পাদক ইব্রাহীম শাহিনসহ সরকারি কর্মকর্তা, জনপ্রতিনিধি ও সুবিধাভোগীরা উপস্থিত ছিলেন।

কষ্টের পয়সায় কেনা জমি বেদখলের আশঙ্কা

কুষ্টিয়ায় তিন ভূমি দস্যুর ভয়ে তটস্থ মিলপাড়ার সাইফুল

নিজ সংবাদ ॥  কুষ্টিয়া শহরের বাহাদুরখালী মৌজায় অনেক কষ্টে পয়সা জমিয়ে সোয়া এক টুকরো জমি কিনেছিলেন মিলপাড়ার বাসিন্দা সাইফুল ইসলাম রাজা। সেই জমিতে শকুনের দৃষ্টি পড়েছে। ৩ ভূমিদস্যু সেই জমি জবর দখলে মরিয়া হয়ে উঠেছে। জমি দখলে বাধা দিলে তারা সাইফুলকে প্রাণনাশের হুমকি দিয়েছে। আবার কখনও তারা সাইফুলের কাছে মোটা অংকের চাঁদাও দাবি করছে। এ নিয়ে থানায় জিডিও করেছেন সাইফুল। মিলপাড়া রবীন্দ্র স্মরনীর বাসিন্দা সাইফুল ইসলাম রাজা অভিযোগ করে বলেন, তিনি ২০১৭ সালে ইয়াসমিন নামে এক মহিলার থেকে বাহাদুরখালী মৌজার ১১৯৯ খতিয়ান ১০৫০ দাগে সোয়া ৩ শতক জমি কিনেন। আড়–য়াপাড়ার দত্তপাড়া রোডের আব্দুল হামিদ ড্রাইভারের ছেলে মো. পিয়াস, আড়–য়াপাড়া বাহাদুর আলী লেনের ১ নং গলির মৃত আবুল হায়াতের ছেলে সওকত আলী ওরফে টন ও বাহির বোয়ালদহ গ্রামের আব্দুল লতিফের ছেলে মো. রাসেল এক বছর ধরে ওই জমি দখলের চেষ্টা করে আসছে। সাইফুল জানান, ওই ভূমি দস্যুরা এখন ওই জমি নিজেদের বলে দাবি করছে। জমি ছেড়ে না দিলে ভুমি দস্যুরা সাইফুলকে প্রাণনাশের হুমকি দিচ্ছে। এছাড়া সাইফুলকে জানিয়েছে এই জমি নিজ দখলে রাখতে হলে ৫ লাখ টাকা চাঁদা দিতে হবে, না হলে জমির মায়া ছেড়ে দিতে হবে। এ কারণে সাইফুল ও তার পরিবার চরম নিরাপত্তহীনতায় ভুগছে। সাইফুল আশঙ্কা করছে যে কোন সময় ওই  ভুমি দস্যুরা তার জমিটি দখল করে নিতে পারে। এ ছাড়া তার পরিবারের সদস্যদের বড় ধরণের করে দিতে পারে। তিনি এ ব্যাপারে কুষ্টিয়া মডেল থানায় জিডি করেছেন। তিনি এ ব্যাপারে পুলিশ ও প্রশাসনের হস্তক্ষেপ কামনা করেছেন। পুলিশের একটি সূত্র জানিয়েছে, গত এক সপ্তাহে পুলিশের কাছে জমি নিয়ে প্রায় শতাধিক অভিযোগ জমা পড়েছে। জমা পড়া অভিযোগগুলো খতিয়ে দেখছে পুলিশ। এর মধ্যে অন্যায়ভাবে দখল বা জমি দখলের চেষ্টা করা হচ্ছে এমন বিষয়ে দ্রুত পদক্ষেপ নেয়া হচ্ছে। এ বিষয়ে জানতে চাইলে সওকত আলী টন বলেন,‘ জমিটি নিয়ে ঝামেলা আছে। আমাদের বিরুদ্ধে দখলের যে অভিযোগ আনা হয়েছে সেটা ঠিক নয়।’ কুষ্টিয়ার পুলিশ সুপার এসএম তানভীর আরাফাত বলেন,‘ অনেকেই অভিযোগ নিয়ে আসছে। সত্যতা যাচাই করে ব্যবস্থা নেয়া হচ্ছে।’

ইবি’র সাবেক প্রক্টর মাহবুবরসহ তিন শিক্ষকের বিরুদ্ধে দুদকে অভিযোগ         

ইবি প্রতিনিধি ॥ শিক্ষক নিয়োগ বাণিজ্যে ঘুষ গ্রহনের অভিযোগ উঠেছে ইসলামী বিশ্ববিদ্যালয়ের (ইবি) তিন শিক্ষকের বিরুদ্ধে। আরিফ হাসান খান (নাহিদ) নামে এক ব্যক্তি দুদকে এ অভিযোগ করেন। এ ঘটনায় অভিযোগকারীকে স্বাক্ষী দেয়ার জন্য তলব করেছে দুর্নীতি দমন কমিশন (দুদক)। অভিযোগ ওঠা তিন শিক্ষক হলেন ইসলামী বিশ্ববিদ্যালয়ের সাবেক প্রক্টর ড. মোঃ মাহবুবর রহমান, সহযোগী অধ্যাপক রুহুল আমীন ও সহকারী অধ্যাপক এস এম আব্দুর রহিম। আগামী রবিবার (২৭ সেপ্টেম্বর) সকাল ১০টায় অভিযোগকারীকে দুর্নীতি দমন কমিশন এর প্রধান কার্যালয়ে উপস্থিত হয়ে স্বাক্ষীকে বক্তব্য প্রদানের জন্য বলা হয়েছে।

দুর্নীতি দমন কমিশনের উপপরিচালক ও অনুসন্ধানকারী কর্মকর্তা মোঃ আব্দুল মাজেদ স্বাক্ষরিত প্রেরিত চিঠিতে এ তথ্য জানা গেছে।

চিঠিতে জানা গেছে, ইসলামী বিশ্ববিদ্যালয়ের সাবেক প্রক্টর ড. মোঃ মাহবুবর রহমান, সহযোগী অধ্যাপক রুহুল আমীন ও সহকারী অধ্যাপক এস এম আব্দুর রহিম এর বিরুদ্ধে শিক্ষক নিয়োগ বাণিজ্যে ঘুষ গ্রহনের অভিযোগ উঠেছে। অভিযোগের সুষ্ঠু অনুসন্ধানের স্বার্থে বক্তব্য গ্রহণ ও শ্রবণ করা একান্ত প্রয়োজন। অভিযোগ বিষয়ে অনুসন্ধানপূর্বক অনুসন্ধান প্রতিবেদন দাখিলের জন্য মোঃ আব্দুল মাজেদকে অনুসন্ধানী কর্মকর্তা হিসেবে নিয়োগ করা হয়েছে। অভিযোগের বিষয়ে আগামী ২৭ সেপ্টেম্বর সকাল ১০টায় দুর্নীতি দমন কমিশন প্রধান কার্যালয়, ১, সেগুনবাগিচা, ঢাকায় উপস্থিত হয়ে অভিযোগকারী আরিফ হাসান খানকে বক্তব্য প্রদান পূর্বক অনুসন্ধান কাজে সহযোগিতার অনুরোধ করা হলো। ইসলামী বিশ্ববিদ্যালয়ের ভারপ্রাপ্ত রেজিষ্ট্রার এস এম আব্দুল লতিফ জানান, এমন একটি চিঠি দপ্তরে এসেছে। তবে ইসলামী বিশ্ববিদ্যালয়ের সাবেক প্রক্টর ড. মোঃ মাহবুবর রহমানের কাছে এ ব্যাপারে জানতে চাইলে তিনি জানান, বিষয়টি আমার জানা নেই। যদি জানতাম অবশ্যই আপনাদের জানাতাম।

সুত্রে জানা গেছে, সম্প্রতি কুষ্টিয়া ইসলামী বিশ্ববিদ্যালয়ে শিক্ষক নিয়োগ বাণিজ্যে নিয়ে সাবেক প্রক্টর ড. মোঃ মাহবুবর রহমানসহ কয়েকজন শিক্ষকের জড়িত থাকার অভিযোগে প্রিন্ট ও ইলেকট্রনিক্স মিডিয়ায় সংবাদ প্রকাশিত হয়। এছাড়া বিশ্ববিদ্যালয়ের শিক্ষক সংগঠন ও বঙ্গবন্ধু পরিষদের নেতৃবৃন্দ শিক্ষক নিয়োগ বাণিজ্যে জড়িত থাকায় সাবেক প্রক্টর মাহবুবর রহমানের বিরুদ্ধে বিভিন্ন দপ্তরে অভিযোগ পাঠান। ইবি কর্মকতা সমিতির সাধারণ সম্পাদক ও কর্মকর্তা  ফেডারেশনের মহাসচিব মীর মোহম্মদ মোর্শেদুর রহমান জানান, আপনাদের সবই জানা। শুধু এটুকু বলতে চাই, দুর্নীতিবাজ যেই হোক না কোন দেশের প্রচলিত আইনে তার বিচার হওয়া উচিত। এ বিষয়ে জানতে বিশ্ববিদ্যালয়ের প্রো-ভিসি প্রফেসর ড. শাহীনুর রহমান এর সাথে যোগাযোগ করার চেষ্টা করা হলেও সম্ভব হয়নি।

উন্নয়নের প্রধান হাতিয়ার তথ্যপ্রযুক্তিনির্ভর শিক্ষা – স্পিকার

ঢাকা অফিস ॥ স্পিকার ড. শিরীন শারমিন চৌধুরী বলেছেন, বর্তমানে উন্নয়নের প্রধান হাতিয়ার তথ্য ও যোগাযোগ প্রযুক্তিনির্ভর শিক্ষা। প্রতিটি বিদ্যালয়ে শেখ রাসেল ডিজিটাল ল্যাব স্থাপনের মাধ্যমে এর ধারাবাহিকতা বজায় থাকবে। শেখ কামাল আইটি ট্রেনিং অ্যান্ড ইনকিউবেশন সেন্টার তথ্য প্রযুক্তিনির্ভর শিক্ষার বিকাশ ঘটিয়ে তরুণ প্রজন্মকে দক্ষ মানবসম্পদে পরিণত করবে। গতকাল বৃহস্পতিবার পীরগঞ্জ উপজেলা পরিষদ মিলনায়তনে আয়োজিত রংপুরের পীরগঞ্জ উপজেলায় শেখ কামাল আইটি ট্রেনিং অ্যান্ড ইনকিউবেশন সেন্টার নির্মাণ কাজের ভিত্তিপ্রস্তর স্থাপন অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথি হিসেবে ভার্চুয়ালি অংশগ্রহণ করে তিনি এসব কথা বলেন। এ সময় অনলাইনে শেখ কামাল আইটি ট্রেনিং সেন্টার নির্মাণ কাজের উদ্বোধন করেন স্পিকার। তিনি বলেন, প্রধানমন্ত্রীর আইসিটি বিষয়ক উপদেষ্টা সজীব ওয়াজেদ জয়ের সুদক্ষ ও সময়োপযোগী কার্যকর পদক্ষেপের কারণে আজ সবাই ডিজিটাল বাংলাদেশের সুবিধা ভোগ করতে সক্ষম হচ্ছে। এর ধারাবাহিকতায় বৈদেশিক উপার্জনের ক্ষেত্র হিসেবে আইসিটি সেক্টর জায়গা করে নেবে। করোনাকালীন ডিজিটাল বাংলাদেশের সুফল সকলে অনুধাবন করতে পেরেছে। ড. শিরীন শারমিন বলেন, প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার সুদক্ষ নির্দেশনা ও তত্ত্বাবধানে সকলের সমন্বিত প্রচেষ্টায় ডিজিটাল বাংলাদেশ আজ দৃশ্যমান। বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের সুযোগ্য সন্তান বহুমুখী প্রতিভার অধিকারী বীর মুক্তিযোদ্ধা শেখ কামালের নামে প্রকল্প ও আইটি ট্রেনিং অ্যান্ড ইনকিউবেশন সেন্টারের নামকরণ স্বার্থক ও সময়োপযোগী। কারণ, তিনি তরুণ প্রজন্মকে সামনের দিকে এগিয়ে নিয়ে যেতে চেয়েছিলেন। রংপুর জেলার জেলা প্রশাসক মো. আসিব আহসানের সভাপতিত্বে অনুষ্ঠানে তথ্য ও যোগাযোগ প্রযুক্তি বিভাগের প্রতিমন্ত্রী জুনাইদ আহমেদ পলক বিশেষ অতিথি হিসেবে বক্তব্য রাখেন। অনুষ্ঠানে অতিথি হিসেবে বাংলাদেশ হাই-টেক পার্ক কর্তৃপক্ষের ব্যবস্থাপনা পরিচালক (সচিব) হোসনে আরা বেগম, রংপুর বিভাগীয় কমিশনার মো. আবদুল ওয়াহাব ভূঞা, রংপুর জেলা পুলিশ সুপার বিপ্লব কুমার সরকার বক্তব্য রাখেন। শেখ কামাল আইটি ট্রেনিং অ্যান্ড ইনকিউবেশন সেন্টার নির্মাণ স্থাপন প্রকল্পের প্রকল্প পরিচালক মো. মোস্তফা কামাল অনুষ্ঠানে স্বাগত বক্তব্য প্রদান করেন।