বিজিবি-বিএসএফ মহাপরিচালক পর্যায়ের সম্মেলন শুরু, সীমান্তে হত্যা নিয়ে আলোচনা

বর্ডার গার্ড বাংলাদেশ (বিজিবি) এবং ভারতের বর্ডার সিকিউরিটি ফোর্স (বিএসএফ) এর মধ্যে মহাপরিচালক পর্যায়ের সীমান্ত সম্মেলনের প্রথমদিন সীমান্তে নিরস্ত্র বাংলাদেশি নাগরিকদের গুলি করে হত্যা বা আহত করার ঘটনা নিয়ে আলোচনা হয়েছে। ঢাকার পিলখানা বিজিবি সদর দপ্তরের সম্মেলন কক্ষে গতকাল বৃহস্পতিবার সকালে এই সম্মেলন শুরু হয় বলে এক সংবাদ বিজ্ঞপ্তিতে জানানো হয়েছে। সম্মেলনে ১৩ সদস্যের বাংলাদেশ প্রতিনিধিদলের নেতৃত্ব দিচ্ছেন বিজিবি মহাপরিচালক মেজর জেনারেল মো. সাফিনুল ইসলাম। এই দলে রয়েছেন অতিরিক্ত মহাপরিচালক ও বিজিবি সদর দপ্তরের সংশ্লিষ্ট স্টাফ অফিসার, প্রধানমন্ত্রীর কার্যালয়, স্বরাষ্ট্র মন্ত্রণালয়, পররাষ্ট্র মন্ত্রণালয়, যৌথ নদী কমিশন এবং ভূমি রেকর্ড ও জরিপ অধিদপ্তরের কর্মকর্তারা। অন্যদিকে ছয় সদস্যের ভারতীয় প্রতিনিধিদলের নেতৃত্ব দিচ্ছেন বিএসএফ মহাপরিচালক রাকেশ আস্থানা। তার দলে রয়েছেন বিএসএফ সদর দপ্তর এবং ভারতের স্বরাষ্ট্র ও পররাষ্ট্র মন্ত্রণালয়ের কর্মকর্তারা। সম্মেলনের প্রথম বৈঠকে সীমান্তে বাংলাদেশি নাগরিক হত্যা নিয়ে আলোচনা ছাড়াও ভারত থেকে বাংলাদেশে ফেনসিডিল, গাঁজা, মদ, ইয়াবা, যৌন উত্তেজক ট্যাবলেটসহ মাদক ও নেশাজাতীয় দ্রব্যের চোরাচালান বিষয়ে আলোচনা হয়েছে। এছাড়া অস্ত্র, গোলা-বারুদ ও বিস্ফোরক দ্রব্য পাচার, বাংলাদেশি নাগরিকদের ধরে নিয়ে যাওয়া, অবৈধভাবে সীমান্ত অতিক্রম বা বাংলাদেশে জোরপূর্বক অনুপ্রবেশ করানো, মানসিক ভারসাম্যহীন ভারতীয় নাগরিকদের বাংলাদেশে পুশ-ইন করা, সীমান্তের ১৫০ গজের মধ্যে উন্নয়নমূলক নির্মাণকাজ, উভয় দেশের সীমান্ত নদীর তীর সংরক্ষণ করা, বাংলাবান্ধা আইসিপিতে দর্শক গ্যালারি নির্মাণ, সমন্বিত সীমান্ত ব্যবস্থাপনা বাস্তবায়নে যৌথ টহল পরিচালনা, রিজিয়ন- ফ্রন্টিয়ার পর্যায়ের অফিসারদের নিয়মিত বৈঠক আয়োজন, পাবর্ত্য অঞ্চলে হিল ফ্লাইং প্রশিক্ষণ ও অপারেশন পরিচালনা এবং উভয় বাহিনীর মধ্যে পারস্পরিক যোগাযোগ ও বিরাজমান সৌহার্দ্য বৃদ্ধির উপায় নিয়েও বৈঠকে আলোচনা হয়েছে বলে সংবাদ বিজ্ঞপ্তিতে জানানো হয়েছে।

 

 

ধান-চাল সংগ্রহের লক্ষ্যমাত্রা পূরণ না হলেও উদ্দেশ্য সফল হয়েছে: খাদ্যমন্ত্রী

খাদ্যমন্ত্রী সাধন চন্দ্র মজুমদার বলেছেন, চলতি বোরো মৌসুমে ধানের ভালো ফলন ও ন্যায্য দাম পেয়ে কৃষকের মুখে হাসি ফুটেছে। চালের বর্তমান বাজার দর সহনীয় ও স্থিতিশীল আছে। সদ্য সমাপ্ত বোরো মৌসুমের ধান-চাল সংগ্রহের লক্ষ্যমাত্রা শত ভাগ পূরণ না হলেও উদ্দেশ্য সফল হয়েছে। গতকাল বৃহস্পতিবার দুপুরে নওগাঁর নিয়ামতপুরে স্থানীয় বিভিন্ন উন্নয়নমূলক অনুষ্ঠানে যোগ দিয়ে এসব কথা বলেন তিনি। খাদ্য মন্ত্রণালয়ের সংবাদ বিজ্ঞপ্তিতে এসব তথ্য জানানো হয়েছে। এ সময় মন্ত্রী বলেন, এবার অভ্যন্তরীণ খাদ্যসশ্য সংগ্রহের লক্ষ্যমাত্রার পুরোটা সংগৃহীত না হলেও যতটুকু সংগৃহীত হয়েছে, তা সরকারি মজুতের জন্য যথেষ্ট। প্রাধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার দূরদর্শিতা ও সঠিক সিদ্ধান্তের কারণে প্রকৃতিক দূর্যোগ, করোনা মহামারি ও বন্যা মোকাবিলার পরও দেশে খাদ্যের অভাব নেই। আগামীতেও চালের বাজার দর সহনীয় ও স্থিতিশীল থাকবে বলে আশাবাদ ব্যক্ত করেন মন্ত্রী। চাল আমদানির বিষয়ে মন্ত্রী বলেন, সারাদেশে মজুত পরিস্থিতি যাচাই করা হচ্ছে। বাজার দর স্থিতিশীল রাখতে প্রয়োজন হলে চাল আমদানি করা হবে। নিয়ামতপুর উপজেলা অডিটরিয়ামে স্থানীয় উপজেলা আইন শৃঙ্খলা ও উন্নয়ন সমন্বয় সভায় প্রাধান অতিথির বক্তব্য রাখেন মন্ত্রী। এ ছাড়া বিজ্ঞান ও প্রযুক্তি বিষয়ক ম্যাধ্যমিক পর্যায়ের অনলাইন কুইজ প্রতিযোগিতায় অংশগ্রহণকারীদের মাঝে তিনি পুরস্কার বিতরণ করেন।

সাবরিনা-আরিফসহ ৮ জনের বিরুদ্ধে সাক্ষ্য ২৮ সেপ্টেম্বর

করোনার ভুয়া রিপোর্ট দেয়ার অভিযোগে প্রতারণার মামলায় জেকেজি হেলথকেয়ারের চেয়ারম্যান ডা. সাবরিনা চৌধুরী ও প্রধান নির্বাহী কর্মকর্তা (সিইও) আরিফুল হক চৌধুরীসহ ৮ জনের বিরুদ্ধে করা মামলার সাক্ষ্য গ্রহণের জন্য ২৮ সেপ্টেম্বর দিন ধার্য করেছেন আদালত। গতকাল বৃহস্পতিবার ঢাকা মহানগর হাকিম সরাফুজ্জামান আনছারী এ দিন ধার্য করেন। এ দিন আদালতে সাক্ষ্য দেন রফিকুল ইসলাম। তিনি জব্দ তালিকার সাক্ষী। সাক্ষ্য শেষে তাকে জেরা করেন আসামি পক্ষের আইনজীবীরা। এরপর বিচারক পরবর্তী সাক্ষ্য গ্রহণের জন্য ২৮ সেপ্টম্বর দিন ধার্য করেন। এ মামলায় ৪২ সাক্ষীর মধ্যে চার জনের সাক্ষ্য শেষ হয়েছে। মামলা সূত্রে জানা যায়, ঢাকাসহ দেশের বিভিন্ন জায়গায় করোনা শনাক্তের জন্য নমুনা সংগ্রহ করে তা পরীক্ষা না করেই জেকেজি হেলথকেয়ার ২৭ হাজার মানুষকে রিপোর্ট দেয়। এর বেশিরভাগই ভুয়া বলে ধরা পড়ে। এ অভিযোগে গত ২৩ জুন অভিযান চালিয়ে প্রতিষ্ঠানটি সিলগালা করে দেয়া হয়। পরে তাদের বিরুদ্ধে তেজগাঁও থানায় মামলা দায়ের করা হয় এবং দুজনকে গ্রেফতার করা হয়। ৫ আগস্ট ঢাকা মহানগর হাকিম আদালতে দুপুরে সাবরিনা ও আরিফসহ আটজনের বিরুদ্ধে চার্জশিট দাখিল করেন ডিবি পুলিশের পরিদর্শক লিয়াকত আলী। চার্জশিটভুক্ত অন্য আসামিরা হলেনÑআবু সাঈদ চৌধুরী, হুমায়ূন কবির হিমু, তানজিলা পাটোয়ারী, বিপ্লব দাস, শফিকুল ইসলাম রোমিও ও জেবুন্নেসা। চার্জশিটে সাবরিনা ও আরিফকে প্রতারণার মূলহোতা বলে উল্লেখ করা হয়েছে। বাকিরা প্রতারণা ও জালিয়াতি করতে তাদের সহযোগিতা করেছেন। ২০ আগস্ট ঢাকা মহানগর হাকিম সরাফুজ্জামান আনছারী আসামিদের বিরুদ্ধে অভিযোগ গঠন করেন। এ সময় তারা নিজেদের নির্দোষ দাবি করে ন্যায়বিচার প্রত্যাশা করেন।

 

 

 

 

চুয়াডাঙ্গায় স্টোর কিপারের বিরুদ্ধে ৩ কোটি টাকা আত্মসাতের অভিযোগ

চুয়াডাঙ্গা প্রতিনিধি ॥ চুয়াডাঙ্গা সিভিল সার্জন কার্যালয়ের স্টোর কিপার হাফিজ বিন ফয়সাল ওরফে পিয়াসের বিরুদ্ধে সরকারি ওষুধ ও চিকিৎসার উপকরণ খোলা বাজারে বিক্রি করে প্রায় ৩ কোটি টাকা আত্মসাতের অভিযোগ আমলে নিয়েছে দুর্নীতি দমন কমিশন। ফলে শুরু হয়েছে অনুসন্ধান। এরই অংশ হিসেবে গত বুধবার দুদকের সমন্বিত কুষ্টিয়া কার্যালয়ে চুয়াডাঙ্গা সদর হাসপাতালসহ তিনটি উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সের স্টোর কিপারদের বক্তব্য নেয়া হয়েছে। জানা গেছে, চুয়াডাঙ্গা সিভিল সার্জন কার্যালয়ে ২০১০ সাল থেকে কর্মরত হাফিজ বিন ফয়সাল ওরফে পিয়াস। যোগদানের পর থেকে তিনি কেন্দ্রীয় ঔষধাগার থেকে বরাদ্দকৃত ওষুধ ও চিকিৎসা সামগ্রী সদর হাসপাতালসহ উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সগুলোতে সরবরাহ করে আসছিলেন। অভিযোগ উঠেছে এ সুযোগে তিনি বিভিন্ন সময় ওষুধ এবং চিকিৎসা সামগ্রী সদর হাসপাতাল ও উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে সরবরাহ না করে খোলা বাজারে বিক্রি করে কয়েক কোটি টাকা আত্মসাৎকরেছেন। এই অভিযোগের প্রেক্ষিতেই দুর্নীতি দমন কমিশন তদন্তের প্রক্রিয়া শুরু করেছে। হাফিজ বিন ফয়সালের বিরুদ্ধে উত্থাপিত অভিযোগের প্রেক্ষিতে চুয়াডাঙ্গা সদর হাসপাতাল ও উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সগুলোর স্টোর কিপারদের বক্তব্য নেয়ার জন্য অনুসন্ধানকারী কর্মকর্তা দিন নির্ধারণ করে নোটিশ দেন। ১৬ সেপ্টেম্বর ছিল ধার্যকৃত দিন। এদিনে সদর হাসপাতালের স্টোর কিপার মো. হাদিউজ্জামান, দামুড়হুদা উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সের স্টোর কিপার হুমায়ূন কবির, জীবননগর উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সের স্টোর কিপার শামসুল হক ও আলমডাঙ্গা উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সের স্টোর কিপার জহুরুল হক কুষ্টিয়ায় দুদক সমন্বিত কার্যালয়ে উপস্থিত হয়ে দুদকের কর্মকর্তার কাছে নিজ নিজ বক্তব্য উপস্থাপন করেছেন। এ ব্যাপারে সিভিল সার্জন কার্যালয়ের অভিযুক্ত স্টোর কিপার হাফিজ বিন ফয়সাল মুঠোফোনে জানান, তার বিরুদ্ধে আনা সব অভিযোগ মিথ্যা। এসব ওষুধ বাইরে পাওয়া যায় না এবং কেউ কেনে না। তিনি বলেন, আমার অফিসের কেউ প্রতিহিংসা পরায়ণ হয়ে অথবা বাইরের কেউ হয়রানি করতে দুদকের কাছে এ অভিযোগ করেছে। চুয়াডাঙ্গা সিভিল সার্জন ডা. এএসএম মারুফ হাসান জানান, এক বছরের বেশি সময় ধরে দুদক মামলাটি অনুসন্ধান করছে। অনুসন্ধানকারী কর্মকর্তা দুদকের উপসহকারী পরিচালক মো. নাছরুল্লাহ হোসাইন গত এক বছরে ওষুধ ও চিকিৎসা উপকরণের প্রাপ্তি, ক্রয়, সরবরাহ, বিতরণবিষয়ক প্রয়োজনীয় কাগজপত্র সরেজমিনে দেখেছেন এবং বেশ কিছু ফটোকপি করে নিয়েছেন। তিনি বলেন, ঘটনাকাল ২০১৭ সাল। সেসময় সিভিল সার্জনের দায়িত্বে ছিলেন রওশন আরা বেগম।

 

 

পাবনা-৪ আসনে উপনির্বাচন: ২৬ সেপ্টেম্বর এলাকায় সাধারণ ছুটি

পাবনা প্রতিনিধি ॥ পাবনা-৪ আসনে উপনির্বাচন উপলক্ষে আগামী ২৬ সেপ্টেম্বর নির্বাচনী এলাকায় সাধারণ ছুটি ঘোষণা করেছে সরকার। গতকাল বৃহস্পতিবার জনপ্রশাসন মন্ত্রণালয় থেকে সাধারণ ছুটি ঘোষণা করে আদেশ জারি করা হয়েছে। গত ২ এপ্রিল সংসদ সদস্য শামসুর রহমান শরীফ ডিলুর মৃত্যুতে পাবনা-৪ আসন শূন্য ঘোষণা করা হয়। আদেশে বলা হয়েছে, নির্বাচন কমিশনের চাহিদা অনুযায়ী জাতীয় সংসদের পাবনা-৪ নির্বাচনী এলাকার (আটঘরিয়া ও ঈশ্বরদী উপজেলা) শূন্য আসনে ভোটগ্রহণের দিন ২৬ সেপ্টেম্বর সব সরকারি আধা-সরকারি, স্বায়ত্তশাসিত ও বেসরকারি অফিস/প্রতিষ্ঠান/সংস্থায় কর্মরত কর্মকর্তা/কর্মচারী এবং সরকারি-বেসরকারি শিক্ষাপ্রতিষ্ঠানের শিক্ষক/কর্মকর্তা-কর্মচারীদের ভোট দেয়া ও গ্রহণের সুবিধার্থে সাধারণ ছুটি ঘোষণা করা হলো।

করোনায় আরও ৩৬ মৃত্যু, নতুন আক্রান্ত ১৫৯৩

ঢাকা অফিস ॥ সারাদেশে গত ২৪ ঘণ্টায় করোনাভাইরাসে (কোভিড-১৯) আক্রান্ত হয়ে আরও ৩৬ জন মারা গেছেন। এর মধ্যে পুরুষ ২৮ ও নারী আটজন। ৩৬ জনের মধ্যে হাসপাতালে ৩৪ ও বাড়িতে দুজনের মৃত্যু হয়েছে। এ নিয়ে ভাইরাসটিতে মৃতের সংখ্যা বেড়ে দাঁড়াল চার হাজার ৮৫৯ জনে। করোনাভাইরাস শনাক্তে গত ২৪ ঘণ্টায় ৯৪টি পরীক্ষাগারে ১৩ হাজার ৭৬৯টি নমুনা সংগ্রহ হয়। পরীক্ষা হয়েছে ১৩ হাজার ৬৭৩টি। একইসময়ে করোনাভাইরাসে আক্রান্ত নতুন রোগী শনাক্ত হয়েছেন আরও এক হাজার ৫৯৩ জন। ফলে দেশে মোট শনাক্ত রোগীর সংখ্যা দাঁড়াল তিন লাখ ৪৪ হাজার ২৬৪ জনে। এ পর্যন্ত মোট নমুনা পরীক্ষার সংখ্যা দাঁড়িয়েছে ১৭ লাখ ৮৩ হাজার ৭৭৯টি। গতকাল বৃহস্পতিবার বিকেলে স্বাস্থ্য অধিদফতরের অতিরিক্ত মহাপরিচালক (প্রশাসন) অধ্যাপক ডা. নাসিমা সুলতানা স্বাক্ষরিত করোনাভাইরাস বিষয়ক এক সংবাদ বিজ্ঞপ্তিতে এ তথ্য জানানো হয়। বিজ্ঞপ্তিতে বলা হয়, গত ২৪ ঘণ্টায় সুস্থ হয়েছেন আরও দুই হাজার ৪৪৩ জন। এ নিয়ে মোট সুস্থ রোগীর সংখ্যা দাঁড়াল দুই লাখ ৫০ হাজার ৪১২ জনে। ২৪ ঘণ্টায় নমুনা পরীক্ষার তুলনায় রোগী শনাক্তের হার ১১ দশমিক ৬৫ শতাংশ এবং এ পর্যন্ত নমুনা পরীক্ষার তুলনায় রোগী শনাক্তের হার ১৯ দশমিক ৩০ শতাংশ। রোগী শনাক্তের তুলনায় সুস্থতার হার ৭২ দশমিক ৭৪ শতাংশ এবং মৃত্যুর হার এক দশমিক ৪১ শতাংশ। এ পর্যন্ত করোনায় মোট মৃতের পুরুষ তিন হাজার ৭৮৮ (৭৭ দশমিক ৯৬ শতাংশ) এবং নারী এক হাজার ৭১ জন (২২ দশমিক শূন্য ৪ শতাংশ)। বয়সভিত্তিক বিশ্লেষণে দেখা গেছে, গত ২৪ ঘণ্টায় করোনায় মৃত ৩৬ জনের মধ্যে বিশোর্ধ্ব দুজন, ত্রিশোর্ধ্ব একজন, চল্লিশোর্ধ্ব পাঁচজন, পঞ্চাশোর্ধ্ব সাতজন এবং ষাটোর্ধ্ব ২১ জন রয়েছেন। বিভাগ অনুযায়ী, গত ২৪ ঘণ্টায় করোনায় মৃত ৩৬ জনের মধ্যে ঢাকা বিভাগে ২০ জন, চট্টগ্রামে ৫, রাজশাহীতে ৪, খুলনায় ২, বরিশালে ৩, সিলেটে একজন এবং রংপুরে একজন রয়েছেন।

ঝিনাইদহে মোবাইল নাম্বারের সূত্র ধরে চায়না চপার মেশিন উদ্ধার

ঝিনাইদহ প্রতিনিধি ॥ ঝিনাইদহে একটি মোবাইল নাম্বারের সূত্র ধরে নীলফামারি থেকে চায়না চপার মেশিন উদ্ধার করেছে পুলিশ। ঝিনাইদহের অতিরিক্ত পুলিশ সুপার (সদর সার্কেল) আবুল বাশার জানান, ঝিনাইদহ পৌর এলাকার আরাপপুর কর্নেল রহমান সড়কের মল্লিক ইলেক্ট্রনিক্স নামে একটি প্রতিষ্ঠান অনলাইনের মাধ্যমে দেশের বিভিন্ন জায়গায় কুরিয়ার যোগে চায়না চপার মেশিন বিক্রয় করে আসছিল। ঝিনাইদহ সুন্দরবন কুরিয়ার সার্ভিসের বুকিংম্যান মালামালের নির্ধারিত মূল্য লেখতে ভুলে যান। মালটির বুকিংয়ের মূল্য নির্ধারণ ছিল ৩৪ হাজার টাকা। কিন্তু তিনি তা লেখেননি। ফলে মালের গ্রাহক নিলফামারি জেলার অরুন রায় নামের এক কৃষক সুযোগ বুঝে টাকা না দিয়ে মালামাল নিয়ে সটকে পড়ে।

পরবর্তীতে বিষয়টি কর্তৃপক্ষের নজরে আসলে ওই মোবাইল নাম্বারের সূত্র ধরে ঝিনাইদহ সদর থানায় সুন্দরবন কুরিয়ার সার্ভিসের বুকিংম্যান মোঃ আসাদ একটি সাধারণ ডায়েরী করেন। পরে ঝিনাইদহের অতিরিক্ত পুলিশ সুপার (সদর সার্কেল) আবুল বাশার তথ্য প্রযুক্তি ব্যবহারের মাধমে ওই ব্যক্তিকে সনাক্ত করে এবং নিলফামারি জেলা পুলিশের সহযোগিতায় ওই মেশিনটি উদ্ধার করে। বুধবার দুপুরে প্রকৃত মালিকের নিকট মেশিনটি হস্তান্তর করা হয়। এ সময় উপস্থিত ছিলেন ঝিনাইদহ সদর থানার কর্মকর্তা ইনচার্জ মোহাম্মদ মিজানুর রহমান, এস আই শফিকুল ইসলাম। এ ঘটনায় প্রকৃত মালিক পুলিশের এ ধরণের সফলতাকে ধন্যবাদ জানিয়েছেন।

মেহেরপুরে মোটরসাইকেলের ধাক্কায় বৃদ্ধা নিহত

মেহেরপুর প্রতিনিধি ॥ মেহেরপুর সদর উপজেলার খোকসা গ্রামে মোটরসাইকেলের ধাক্কায় উমাতন নেছা (৭০) নামে এক বৃদ্ধা নিহত হয়েছেন। গতকাল বৃহস্পতিবার সকালে কুষ্টিয়া জেনারেল হাসপাতালে চিকিৎসাধীন অবস্থায় তিনি মারা যান। নিহত উমাতন নেছা ওই গ্রামের চাঁদ আলীর স্ত্রী। এর আগে গত বুধবার বিকেলে খোকসা সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়ের সামনের আমঝুপি-গাঁড়াডোব সড়ক পার হওয়ার সময় দ্রুতগামী মোটরসাইকেলের ধাক্কায় গুরুতর আহত হন তিনি। এ অবস্থায় তাকে প্রথমে মেহেরপুর ২৫০ শয্যার জেনারেল হাসপাতালে ও পরে কুষ্টিয়া জেনারেল হাসপাতালে ভর্তি করা হয়। সেখানে চিকিৎসাধীন অবস্থায় গতকাল বৃহস্পতিবার মৃত্যু হয় তার। মেহেরপুর সদর থানার ওসি শাহ দারা খান এ তথ্য নিশ্চিত করেছেন।

 

যশোরে আরো ২৮ জন করোনায় আক্রান্ত

ঢাকা অফিস ॥ যশোর বিজ্ঞান ও প্রযুক্তি বিশ্ববিদ্যালয় (যবিপ্রবি) জেনোম সেন্টার ঘোষিত বৃহস্পতিবারের ফলাফলে দেখা যায়, যশোর জেলার ২৮ জনের নমুনায় করোনা ভাইরাস রয়েছে।

এর আগের দিন যশোরে মাত্র চারটি নমুনা পজেটিভ ফল দিয়েছিল। যদিও সেদিন যশোরের নমুনা পরীক্ষা করা হয়েছিল মাত্র ১৭টি। আর বুধবার রাতে পরীক্ষা করা হয় ১৭৯টি নমুনা।

বিশ্ববিদ্যালয়ের অণুজীববিজ্ঞান বিভাগের সহযোগী অধ্যাপক ও পরীক্ষণ দলের সদস্য ড. তানভীর ইসলাম জানান, বুধবার রাতে তাদের ল্যাবে তিন জেলার মোট ২০১টি নমুনা পরীক্ষা করা হয়। পরীক্ষিত নমুনাগুলোর মধ্যে ৩১টি পজেটিভ ও ১৭০টি নেগেটিভ ফল দেয়।

এদিন যশোর জেলার ১৭৯টি নমুনা পরীক্ষা করা হয়। এর মধ্যে ২৮টি পজেটিভ ফল দিয়েছে।

এছাড়া মাগুরার ১৫টি নমুনা পরীক্ষা করে একটি এবং নড়াইলের সাতটি নমুনা পরীক্ষা করে দুটি পজেটিভ ফল পাওয়া যায়।

পরীক্ষা সংক্রান্ত সব তথ্য সংশ্লিষ্ট তিন জেলার সিভিল সার্জনদের অফিসে পাঠিয়ে দিয়েছেন বিশ্ববিদ্যালয় কর্তৃপক্ষ।

অস্ত্র মামলায় সাহেদের যাবজ্জীবন চায় রাষ্ট্রপক্ষ

ঢাকা অফিস ॥ অস্ত্র আইনে করা মামলায় রিজেন্ট গ্রুপ ও হাসপাতালের চেয়ারম্যান সাহেদ করিমের সর্বোচ্চ শাস্তি যাবজ্জীবন কারাদ- প্রত্যাশা করছে রাষ্ট্রপক্ষ। গতকাল বৃহস্পতিবার ঢাকা মহানগর দায়রা জজ কে এম ইমরুল কায়েশের আদালতে যুক্তি উপস্থাপন শেষ করে রাষ্ট্রপক্ষ। যুক্তি উপস্থাপনে সাহেদের সর্বোচ্চ শাস্তি যাবজ্জীবন কারাদ- প্রত্যাশা করেন ঢাকা মহানগর পাবলিক প্রসিকিউটর (পিপি) আব্দুল্লাহ আবু। রাষ্ট্রপক্ষের যুক্তি উপস্থাপন শেষে সাহেদের আইনজীবীও যুক্তি উপস্থাপন শুরু করেন। এ দিন সাহেদের পক্ষে যুক্তি উপস্থাপন শেষ না হওয়ায় রোববার পরবর্তী দিন ধার্য করেন আদালত। এর আগে গত বুধবার অস্ত্র আইনে করা মামলায় নিজেকে সম্পূর্ণ নির্দোষ দাবি করে ন্যায়বিচার প্রত্যাশা করেন সাহেদ করিম। আদালতে আত্মপক্ষ সমর্থনে এ দাবি করেন তিনি। এ সময় আদালত তাকে সাফাই সাক্ষী দিবেন কি না- এমন প্রশ্ন করলে সাহেদ বলেন, ‘আমি সাফাই সাক্ষী দিব না’। এরপর আদালত রাষ্ট্রপক্ষের যুক্তি উপস্থাপনের জন্য গতকাল বৃহস্পতিবার দিন ধার্য করেন। আত্মপক্ষ সমর্থনে সাহেদ বলেন, আমার কাছে থেকে কোনো অস্ত্র উদ্ধার করা হয়নি। আমি সম্পূর্ণ নির্দোষ। আমি আদালতের কাছে ন্যায় বিচার প্রত্যাশা করছি। মামলায় ১৪ জন সাক্ষীর মধ্যে ১১ জনের সাক্ষ্যগ্রহণ হয়েছে। করোনায় নানা প্রতারণার অভিযোগ গত ১৫ জুলাই সাতক্ষীরার সীমান্তবর্তী এলাকা থেকে সাহেদকে গ্রেফতার করে র‌্যাব। পরে হেলিকপ্টারে করে তাকে ঢাকায় আনা হয়। পরদিন করোনা পরীক্ষার নামে ভুয়া রিপোর্টসহ বিভিন্ন প্রতারণার অভিযোগে দায়ের করা মামলায় সাহেদের ১০ দিনের রিমান্ড মঞ্জুর করেন আদালত। এরপর তাকে নিয়ে উত্তরায় অভিযানে যায় ডিবি পুলিশ। অভিযানে অস্ত্র উদ্ধার করা হয়। অস্ত্র উদ্ধারের ঘটনায় ডিবি পুলিশের পরিদর্শক এস এম গাফফারুল আলম তার বিরুদ্ধে উত্তরা পশ্চিম থানায় মামলা করা হয়। ৩০ জুলাই ঢাকা মহানগর হাকিম মোর্শেদ আল মামুন ভূঁইয়ার আদালতে আসামি সাহেদের বিরুদ্ধে চার্জশিট দাখিল করেন মামলার তদন্তকারী কর্মকর্তা ডিবি পুলিশের পরিদর্শক মো. শায়রুল। ২৭ আগস্ট ঢাকা মহানগর দায়রা জজ কে এম ইমরুল কায়েশ তার বিরুদ্ধে অভিযোগ গঠন করেন।

কালুখালীতে আওয়ামীলীগ নেতা রজবের ইন্তেকাল

ফজলুল হক ॥ রাজবাড়ীর কালুখালীতে উপজেলার কালিকাপুর ইউপির সাবেক ছাত্রলীগের সভাপতি ও সাবেক আওয়ামীলীগের সাংগঠনিক সম্পাদক মোঃ রজব আলী বৃহস্পতিবার সকাল ৭ টায় ঢাকার একটি বেসরকারী হাসপাতালে স্ট্রোক করে ইন্তেকাল করেছেন (ইন্নানিল্লাহি………… রাজেউন)। মৃত্যুকালে তার বয়স হয়েছিল প্রায় ৪২ বছর। বাদ আসর তার নিজ বাস ভবনে ডোবরা শরীফের পীরজাদা আলহাজ্ব মাওঃ মোঃ শাহ্ খালিদ বিন নাসির এর ইমামতিতে জানাযা নামাজ সম্পন্ন হয়।  এতে হাজারো মানুষ অংশগ্রহণ করে। এ সংবাদে জানাযায় পাংশা উপজেলা পরিষদ চেয়ারম্যান অধ্যাপক ফরিদ হাসান ওদুদ, কালুখালী উপজেলা পরিষদ চেয়ারম্যান আলিউজ্জামান চৌধুরী (টিটো), খোন্দকার শফিকুল ইসলাম এছাড়াও আওয়ামীলীগ নেতা আকমল হোসেন বাচ্চু, সাবেক চেয়ারম্যান মামুন খান, খোন্দকার আনিসুল হক বাবু সহ অন্যান্যরা উপস্থিত  ছিলেন। তার মৃত্যুতে এলাকার শোকের ছায়া নেমে এসেছে।

আলমডাঙ্গায় বিশেষ চাহিদা সম্পন্ন শিশুদের মাঝে হুইল চেয়ার বিতরণ করলেন এমপি ছেলুন

আলমডাঙ্গা অফিস ॥ আলমডাঙ্গায় একীভূত শিক্ষা বাস্তবায়নের লক্ষে বিশেষ চাহিদা সম্পন্ন শিশুদের মাঝে হুইল চেয়ার, চশমা ও হিয়ারিং এইড বিতরণ করা হয়েছে। গতকাল দুপুর সাড়ে ১২টার দিকে হুইল চেয়ার  বিতরণ অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথি ছিলেন জেলা আওয়ামীলীগের সভাপতি বীর মুক্তিযোদ্ধা সোলায়মান হক  জোয়ার্দ্দার ছেলুন এমপি। উপজেলা নির্বাহী অফিসার মো: লিটন আলীর সভাপতিত্বে  বিশেষ অতিথি ছিলেন উপজেলা চেয়ারম্যান আইয়ুব হোসেন,  উপজেলা স্বাস্থ্য ও পরিবার পরিকল্পনা কর্মকর্তা ডা. হাদী জিয়াউদ্দিন আহমেদ, উপজেলা সহকারী কমিশনার ভূমি নির্বাহী ম্যাজিস্ট্রেট হুমায়ন কবীর, থানা অফিস ইনচার্জ আলমগীর কবীর, উপজেলা প্রকৌশলী আব্দুর রশিদ, সমাজ সেবা অফিসার আফাজ উদ্দিন, উপজেলা শিক্ষা অফিসার মামসুজ্জোহার উপস্থাপনায় উপস্থিত ছিলেন  সহকারী শিক্ষা রশিদুল ইসলাম, রফিকুল ইসলাম প্রমুখ। সভা শেষে ১১জন প্রতিবন্ধী শিশুদের মধ্যে হুইল চেয়ার বিতরণ করা হয়।

আন্দোলনের হুমকি না দিয়ে নির্বাচনের প্রস্তুতি নিন, বিএনপিকে কাদের

ঢাকা অফিস ॥ আন্দোলনের হুমকি না দিয়ে বিএনপিকে পরবর্তী নির্বাচনের প্রস্তুতি নেওয়ার আহবান জানিয়েছেন ক্ষমতাসীন আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক এবং সড়ক পরিবহন ও সেতুমন্ত্রী ওবায়দুল কাদের। গতকাল বৃহস্পতিবার সচিবালয়ে নিজের দপ্তরে সমসাময়িক বিষয়ে ব্রিফিংয়ে তিনি এ কথা বলেন। এসময় দেশে এ মুহূর্তে আন্দোলনের বস্তুগত কোনো পরিস্থিতি বিরাজমান নেই, বিএনপির সাবজেক্টিভ কোনো প্রিপারেশনও নেই উল্লেখ করে ওবায়দুল কাদের বলেন, ক্ষমতার পালাবদল চাইলে অন্য কোনো অলিগলি পথ না খোঁজে আগামী নির্বাচনের প্রস্তুতি নিন। খালেদা জিয়ার মুক্তির জন্য নতুন করে বিএনপির আন্দোলনের হুমকি প্রসঙ্গে আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক বলেন, গত ১০ বছর ধরে আন্দোলনের হাঁকডাক শুনছি। ইতোমধ্যে দেশের জনগণও তাদের আন্দোলনের সক্ষমতা দেখে ফেলেছে। তিনি বলেন, বাস্তবে ৫০০ লোক নিয়ে রাজপথে একটি মিছিলও এ পর্যন্ত খালেদা জিয়ার জন্য করতে পারেনি। এ ব্যর্থতা ঢাকবে কী করে? প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা মানবিকতা প্রদর্শন করে খালেদা জিয়ার বয়সজনিত বিষয়টি বিবেচনায় নিয়ে প্রথমে ছয় মাস, পরে আরও ছয় মাস জামিনের মেয়াদ বাড়িয়েছেন। তাই বলে এটি বিএনপির আন্দোলনের ফসল নয়, এটি শেখ হাসিনার মহানুভবতা ও মানবিকতার উদাহরণ। ওবায়দুল কাদের বলেন, বিএনপি নেতারা আন্দোলনের ডাক দিয়ে শীতাতপ নিয়ন্ত্রিত ঘরে বসে থাকলে কর্মীরা আন্দোলন করবেন কীভাবে? বিএনপির আন্দোলনের ডাক আষাঢ়ের তর্জন গর্জনেই সার! করোনা পরীক্ষায় মানুষের অনীহা নিয়ে কথা বলেন ওবায়দুল কাদের। এসময় সবাইকে বাধ্যতামূলকভাবে করোনা পরীক্ষা করাতে বলেন তিনি। কাদের বলেন, করোনা সংক্রমণের লক্ষণ না থাকলেও সংক্রমিত হওয়ার অনেক উদাহরণ রয়েছে। অনেকেই টেস্টের ব্যাপারটিকে খুবই হেলাফেলা করছেন, টেস্ট করাচ্ছেন না। কাজেই টেস্ট বাধ্যতামূলক এবং সবাইকে অবশ্যই করোনা সংক্রমণ হয়েছে কিনা এ ব্যাপারে পরীক্ষা করাতে হবে। এখানে কোন ভুল করলে তার মাশুল আমাদের দিতে হবে। তিনি বলেন, করোনার সংক্রমণ রোধে মানুষের মাঝে অবহেলা রয়েছে, জনসাধারণের মাঝে অবহেলা দেখা যাচ্ছে। দেখা যাচ্ছে গা-ছাড়া ভাব। হাটে বাজারে, পরিবহনে, ফেরিঘাট, শপিংমল, জনসমাগমস্থলে যে চিত্র দেখা যাচ্ছেÑ মনে হচ্ছে দেশে কোন করোনাই নেই। এই অবহেলা করোনা সংক্রমণ নতুন করে ঝুঁকিতে নিয়ে যেতে পারে। আসন্ন শীতে করোনার দ্বিতীয় তরঙ্গ আঘাত হানতে পারে বলে বিশেষজ্ঞরা বারবার বলছেন। সংক্রমণের ধারাবাহিকতা এখনো ক্রমহ্রাসমান ধারায় নামছে না। সড়ক পরিবহন ও সেতুমন্ত্রী আরও বলেন, প্রতিবেশী দেশ ভারতে প্রতিদিন সংক্রমণের সংখ্যা ৯০ হাজার থেকে এক লাখে পৌঁছে গেছে। এজন্য পার্শ্ববর্তী দেশ হিসেবে আমাদের সচেতন ও সতর্ক থাকতে হবে। এরই মাঝে ইউরোপসহ পৃথিবীর বিভিন্ন দেশে দ্বিতীয় তরঙ্গ আঘাত হানছে। এ প্রেক্ষাপটে আমাদের কোনভাবেই হেলাফেলা করার সুযোগ নেই। স্বাস্থ্যবিধি মেনে মাস্ক পরে জীবন ও জীবিকার চাকা এগিয়ে নিতে হবে। সামান্য অবহেলা আমাদের ঝুঁকিতে ফেলতে পারে।

আগামী বছরের শুরুতে ঢাকা সফরে আসবেন এরদোয়ান

ঢাকা অফিস ॥ আগামী বছরের শুরুর দিকে ঢাকায় অনুষ্ঠেয় ডি-৮ শীর্ষ সম্মেলনে যোগদানের বিষয়ে সম্মতি জানিয়েছেন তুরস্কের প্রেসিডেন্ট ও বর্তমান চেয়ার রিসেপ তাইয়েপ এরদোয়ান। বাংলাদেশের পররাষ্ট্রমন্ত্রী এ কে আবদুল মোমেন গত বুধবার তুরস্কের প্রেসিডেন্টের সঙ্গে এক বৈঠকে মিলিত হলে এরদোয়ান ঢাকা সফরের ব্যাপারে সম্মতি জানান। এ সময় তিনি নতুন সদস্য যুক্ত করে ডি-৮ সম্প্রসারণের ব্যাপারে জোর দেন। নির্যাতিত ও দুর্গত রোহিঙ্গা শরণার্থীদের বাংলাদেশ আশ্রয় দেয়ায় প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার ভূয়সী প্রশংসা করেছেন তুরস্কের প্রেসিডেন্ট রিসেপ তাইয়েপ এরদোয়ান। তিনি এ বিষয়ে দ্বিপাক্ষিক ও আন্তর্জাতিক ক্ষেত্রে সম্ভাব্য সকল বিষয়ে বাংলাদেশের পাশে থাকার অভিমত ব্যক্ত করেন। বৈঠকে দু’দেশের বাণিজ্য সম্পর্ক বৃদ্ধির ওপর গুরুত্বারোপ করে সুনির্দিষ্ট কিছু প্রস্তাব দেন তুরস্কের প্রেসিডেন্ট। এর মধ্যে রয়েছে বিদ্যমান শুল্ক বাধা এড়িয়ে নতুন পণ্য, বস্ত্র, ওষুধ ও অন্যান্য খাতের বিনিয়োগ। এ ছাড়া উভয় দেশে বাণিজ্য মেলায় অংশগ্রহণ নিশ্চিত করে প্রয়োজনীয় ব্যবস্থা গ্রহণের আশাবাদ ব্যক্ত করেন তিনি। বাংলাদেশে তুরস্কের আর্থিক সহযোগিতায় একটি আধুনিক হাসপাতাল নির্মাণে প্রয়োজনীয় জমি বরাদ্দের জন্য প্রস্তাব দেন এরদোয়ান। পাশাপাশি বিদ্যমান কোভিড-১৯ পরিস্থিতিতে তুরস্কের পক্ষ থেকে প্রয়োজনীয় আরও সহযোগিতার আশ্বাস প্রদান করেন তিনি। মহামারি কোভিড-১৯ অবসানের পর দ্রুততম সময়ে ঢাকায় নবনির্মিত তুরস্কের দূতাবাস ভবন উদ্বোধনের প্রাক্কালে বাংলাদেশে ভ্রমণে আশাবাদ ব্যক্ত করেন তুরস্কের প্রেসিডেন্ট। দু’দেশের পররাষ্ট্র মন্ত্রণালয়ের মধ্যে নিয়মিত বিরতিতে উচ্চতর পর্যায়ে এফওসি বৈঠক অনুষ্ঠিত হওয়ায় তিনি সন্তুষ্টি প্রকাশ করেন। অদূর ভবিষ্যতে উভয় পক্ষ উচ্চতর পর্যায়ে নিয়মিত আলাপ-আলোচনা চালিয়ে নেয়ার জন্য প্রয়োজনীয় ফোরাম গঠনের ব্যাপারে একমত হন। বৈঠকে তুরস্কের পররাষ্ট্রমন্ত্রী মেভলুত চাভাসওলু উপস্থিত ছিলেন।

গণভবন থেকে ভার্চুয়াল মাধ্যমে জনপ্রশাসন মন্ত্রণালয়ের সম্মেলন কক্ষে প্রধানমন্ত্রী

স্বাস্থ্য মন্ত্রণালয়ের দক্ষতায় করোনা নিয়ন্ত্রণে

ঢাকা অফিস ॥ জনপ্রশাসন কর্মকর্তাদের উদ্দেশে প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা বলেছেন, কে কি বলল, কি লিখল ওইদিকে কান দেবেন না। দিলে কোনো কাজ করতে পারবেন না। আপনার নিজের বিশ্বাস থাকতে হবে, নিজের ওপর আস্থা থাকতে হবে যে, আপনি সঠিক কাজটি করছেন কি-না? যদি সেই আস্থাটা থাকে, তাহলে সে কাজের ফল দেশবাসী পাবে, দেশের মানুষ পাবে। অনেকে স্বাস্থ্য মন্ত্রণালয়ের সমালোচনা করে, কিন্তু স্বাস্থ্য মন্ত্রণালয় যথেষ্ট দক্ষতার পরিচয় দিয়েছে বলেই আমরা কোভিড-১৯ নিয়ন্ত্রণে রাখতে পেরেছি। গতকাল বৃহস্পতিবার সকালে গণভবন থেকে মন্ত্রণালয় ও বিভাগগুলোর ২০২০-২১ অর্থবছরের বার্ষিক কর্মসম্পাদন চুক্তি (এপিএ) সই এবং এপিএ ও শুদ্ধাচার পুরস্কার অনুষ্ঠানে তিনি এসব কথা বলেন। প্রধানমন্ত্রী গণভবন থেকে ভার্চুয়াল মাধ্যমে জনপ্রশাসন মন্ত্রণালয়ের সম্মেলন কক্ষে যুক্ত হয়ে এ অনুষ্ঠানে অংশ নেন। প্রধানমন্ত্রী বলেন, অনেকে স্বাস্থ্য মন্ত্রণালয় নিয়ে অনেক কিছু সমালোচনা করে। কিন্তু আমি মনে করি যে, স্বাস্থ্য মন্ত্রণালয় যথেষ্ট দক্ষতার পরিচয় দিয়েছে এবং সেই সময় তাৎক্ষণিকভাবে যে কাজগুলো করার দরকার ছিল সেটা যথাযথভাবে করা হয়েছে বলেই আমরা কোভিড-১৯ নিয়ন্ত্রণে রাখতে পেরেছি। তিনি বলেন, দুর্যোগ আসবে, কিন্তু সেই দুর্যোগ মোকাবিলা করে আমাদের এগিয়ে যেতে হবে। আমাদের অর্থনীতি যাতে কোনোরকম বাধাগ্রস্ত না হয় বা গতিশীল থাকে আমরা যে প্রণোদনা প্যাকেজগুলো দেয়া শুরু করলাম এটা কিন্তু পৃথিবীর কোনো দেশ আমাদের আগে দিতে পারেনি। আমরাই প্রথম। শেখ হাসিনা বলেন, অর্থ মন্ত্রণালয় সাধারণত কিছু দিতে গেলে তো হাত টেনে রাখে, কিপটেমি করে। এবার কিন্তু কিপটেমি করেনি। সবাইকে হাত খুলে যেখানে যেটা দরকার আমরা দিয়েছি। সেভাবে দেয়া হয়েছে বলেই আজকে আমাদের প্রণোদনা প্যাকেজ দিলাম। এ প্রণোদনা প্যাকেজ দেয়ার ফলে আমাদের অর্থনীতির চাকা সচল থেকেছে। ডিজিপির প্রায় ৪ দশমিক শূন্য ৩ শতাংশ, আমরা প্রণোদনা প্যাকেজ হিসেবে দিয়েছি। নগদ টাকা দিয়েছি। সরকারি টাকার বাইরে আমি নিজে অর্থ সংগ্রহ করে সহায়তা দিয়েছি। প্রধানমন্ত্রী বলেন, আমাদের সবসময় মাথায় রাখতে হবে যে, প্রত্যেকেই নিজের জীবনের ঝুঁকি নিয়ে, অনেক ডাক্তার মারা গেছেন, নার্স মারা গেছেন, স্বাস্থ্যকর্মী মারা গেছেন। তারা কিন্তু সবাই কাজ করেছেন। আমাদের দেশে একশ্রেণির লোক থাকে, তাদের সমালোচনাটা করাই অভ্যাস। পান থেকে চুন খসলে পরে অনেক কথা বলবে, কিন্তু নিজেরা কিছু করবে না। তিনি বলেন, আমি তো বেসরকারি টেলিভিশন অনেকগুলো দিয়ে দিয়েছি। তারপর আছে বিদ্যুৎ…। এখন ডিজিটাল বাংলাদেশ করে দিয়েছি। এরাই একসময় সমালোচনা করেছিল, এখন সেই ডিজিটাল বাংলাদেশেই আমাদের বিরুদ্ধে নানা রকম অপপ্রচার তারা চালাতে থাকবে। সেটা বলুক। আমি মনে করি, আমরা সঠিক পথে আছি কি না- এটা নিজের আত্মবিশ্বাসের ওপর নির্ভর করে। সবাই যখন কাজ করবেন আত্মবিশ্বাস নিয়ে করবেন।

 

করোনা মোকাবেলায় ত্রান বিতরণসহ বহুমূখী জনকল্যানমূলক কার্যক্রমে সেনাবাহিনী

প্রাণঘাতী করোনা মোকাবেলায় নিজেদের পেশাদারিত্ব, সততা ও নিষ্ঠার মাধ্যমে দেশের আপামর মানুষের পাশে  থেকে নিরলসভাবে কাজ করে যাচ্ছে বাংলাদেশ সেনাবাহিনী। এরই ধারাবাহিকতায় অন্যান্য দিনের মত আজও দেশের প্রত্যন্ত অঞ্চলের অসহায় এবং সত্যিকারের দুস্থ মানুষের হাতে খাদ্য সামগ্রী পৌছে দেয়ার নিরন্তর প্রচেষ্টা অব্যাহত  রেখেছে যশোর সেনানিবাসের সেনাসদস্যরা। পাশাপাশি সামাজিক দূরত্ব নিশ্চিতের মাধ্যমে করোনার ভয়াল থাবা  থেকে সাধারণ মানুষকে মুক্ত করতে সেনা সদস্যরা নিয়মিত টহল  জোরদার করেছে। এছাড়াও স্থানীয় মার্কেটগুলোতে জনসমাগম এড়াতে নজরদারি বৃদ্ধি, গণপরিবহন মনিটারিং, স্বাস্থ্যবিধি সংক্রান্ত নীতিমালা বাস্তবায়নসহ গর্ভবতী নারী এবং দুস্থ মানুষের জন্য ফ্রি চিকিৎসা সেবা এবং ঔষধ বিতরণ কার্যক্রম অব্যাহত রয়েছে। অন্যদিকে খুলনা উপকূলীয় এলাকায় ক্ষতিগ্রস্ত বেড়িবাঁধ মেরামতের চেষ্টা অব্যাহত রাখার পাশাপাশি ত্রান বিতরণ, ফ্রি চিকিৎসা সেবা প্রদান এবং  ঔষুধ বিতরণ কার্যক্রম অব্যাহত রয়েছে। সংবাদ বিজ্ঞপ্তি

কুষ্টিয়া সদর উপজেলার বিজিসিসি কমিটির সভা

নিজ সংবাদ ॥ এলজিএসপি-৩ প্রকল্পের আওতায় কুষ্টিয়া সদর উপজেলার বিজিসিসি কমিটির সভা অর্থ বছর ২০১৯-২০ অনুষ্ঠিত। সভায় প্রধান অতিথি হিসাবে উপস্থিত ছিলেন কুষ্টিয়া  জেলা স্থানীয় সরকার শাখা উপ-পরিচালক মৃনাল কান্তি দে। সভার সভাপতিত্ব করেন উপজেলা নির্বাহী অফিসার জুবায়ের হোসেন  চৌধুরী। এ সময় উপস্থিত ছিলেন ডিস্ট্রিক্ট ফেসিলিটেটর আক্তারুজ্জামান। সদর উপজেলা প্রশাসনের আয়োজনে গতকাল বৃহস্পতিবার বিকেল ৩টায় উপজেলা পরিষদের সম্মেলন কক্ষে ১৩টি ইউনিয়ন পরিষদ চেয়ারম্যান ও ইউনিয়ন সচিবদের উপস্থিতিতে সভা অনুষ্ঠিত হয়। উল্লেখ্য, সদর উপজেলার আওতাধীন সকল ইউনিয়নে উন্নয়নমূলক কাজের জন্য উক্ত অর্থ বছরের বাজেট দেওয়া হয়। বাংলাদেশকে ডিজিটাল দেশ হিসেবে গড়ে তুলতে গ্রামের আনাচে কানাচে, সাধারন মানুষের সমস্যা সমাধান, স্কুল, মাদ্রাসা, মসজিদ, কালভার্টসহ ভিন্ন ভিন্ন কাজের মাধ্যমে প্রতিটি ইউনিয়নে যেনো উন্নয়ন হয় সে লক্ষ্যে প্রতিটি  চেয়ারম্যানদের নির্দেশনা প্রদান করা হয় এবং স্ব স্ব ইউনিয়নের বাজেট অনুযায়ী চাহিদা পুরন করতে হবে বলে জানা যায়।

আলমডাঙ্গার জেহালায় জোরপূর্বক জমি দখল ও লুটপাটের অভিযোগ

আলমডাঙ্গা অফিস ॥ চুয়াডাঙ্গার আলমডাঙ্গায় জোরপূর্বক জমি দখল ঘরবাড়ি ভাংচুর ও লুটপাটের অভিযোগ উঠেছে। ঘটনাটি ঘটেছে গত সোমবার জেহালা এলাকায়। এ ঘটনায় আলমডাঙ্গা থানায় লিখিত অভিযোগ দায়ের করেছে। জানাগেছে, আলমডাঙ্গা উপজেলার জেহালার মৃত মোহাম্মদ খাজের আলির ছেলে নুর  মোহাম্মদ দীর্ঘদিন যাবৎ পৈত্রিক জমিতে বসবাস করে আসছে।  তারই আপন ভাই সুর মোহাম্মদ ও ইলিয়াস যোগসাজসে দীর্ঘদিন যাবৎ জোরপূর্বক জমি দখলের চেষ্টা চালিয়ে আসছে। নুর  মোহাম্মদের মা উকিলা খাতুন ও পিতা খাজের আলির বসতবাড়ির  জেহালা মৌজার ৩২২ নং দাগে ২১ শতক জমির মালিক। তারা মৃত্যুর পূর্বে তাদের দুই ছেলে নুর মোহাম্মদ ও সুর মোহাম্মদকে জমি বসতভিটা ও মাঠের জমির অনুপাতে তাদের ভাগবন্টন করে  দেয়। পিতা খাজের আলির নামে ১০.৫০ শতক জমি ও উকিলা খাতুন মা এর নামে ১০.৫০ শতক জমি। সর্বমোট বাড়ির জমি ২১ শতক। নুর মোহাম্মদের পিতা খাজের আলি ১৯৮৭ সালে তার ১০.৫০ শতক জমির ৫.২৫ শতক জমি দুই ভাইকে ভাগের  রেজিষ্ট্রি করে দেয়। উকিলা খাতুন ২০১০ সালে ছেলে নুর  মোহাম্মদকে ১০.৫০ শতক জমি রেজিষ্ট্রি করে দেয়। নুর  মোহাম্মদের জমির পরিমাণ ১৫.৭৫ শতক। এবং সুর মোহাম্মদের ৫.২৫ শতক জমি। সর্বমোট জমি ২১ শতক। তৎকালীন সময়ে খাজের আলি তাদের বাড়ির যাতায়াতের জন্য ৩২০নং দাগের জমিতে ৬শতক জমি রাস্তার জন্য দাখিলা করে দেয়। ৩২০ নং রাস্তার জমি বর্তমানের সরকারি রাস্তার জায়গায় পরিণত হলেও খাজের আলির ছেলে সুর মোহাম্মদ ও ইলিয়াস দখল করে বসতবাড়ি নির্মাণ করেছে। তাদের যাতায়াতের রাস্তার প্রয়োজনে নুর মোহাম্মদের জমি গত ১৪ সেপ্টেম্বর জোরপূর্বক ইটের প্রাচির নির্মাণ করে দখলের চেষ্টা করে। এসময় নুর মোহাম্মদ বিদেশে থাকায় এবং তার স্ত্রী ও মেয়ে শহরের বাড়িতে অবস্থান করায় খাজের আলির ছেলে সুর মোহাম্মদ, ইলিয়াস, জামাই মিজানুর ও  মেয়ে শিউলি খাতুন তার বাড়ি ভাংচুর ও লুটপাট করে। এই ঘটনায় আলমডাঙ্গা থানায় লিখিত অভিযোগ দায়ের করেছে।

দৌলতপুর সীমান্তে ২৩৮ বোতল ফেনসিডিল, মদ ও গাঁজা উদ্ধার : আটক-২

দৌলতপুর প্রতিনিধি ॥ কুষ্টিয়ার দৌলতপুর সীমান্তে বিজিবি’র পৃথক অভিযানে ২৩৮ বোতল ফেনসিডিল, ৪১ বোতল মদ উদ্ধার ও ৪ কেজি গাঁজা হয়েছে। গতকাল বৃহস্পতিবার পৃথক সময়ে উপজেলার বিভিন্ন সীমান্তে অভিযান চালিয়ে এসব মাদক উদ্ধার করে বর্ডার গার্ড বাংলাদেশ বিজিবি। বিজিবি সূত্র জানায়, মাদক পাচারের গোপন সংবাদ পেয়ে ৪৭ বিজিবি ব্যাটালিয়ন অধিনস্থ মহিষকুন্ডি কোম্পানী কমান্ডারের নেতৃত্বে টহল দল বাঁধের বাজার তিন রাস্তার মোড়ে অভিযান চালিয়ে ১৩০ বোতল ফেনসিডিল ও একটি সাইকেলসহ মাদক পাচারকারী মাসুন (১৯) কে আটক করে। সে মহিষকুন্ডি এলাকার মুক্তার হোসেনের ছেলে। অপরদিকে জামালপুর বিওপি’র টহল দল সীমান্ত সংলগ্ন জামালপুর মাঠে অভিযান চালিয়ে ৩০ বোতল ফেনসিডিলসহ হাবিবুর রহমান (৪৫) নামে এক মাদক ব্যবসায়ীকে আটক করে। সে পাকুড়িয়া গ্রামের মৃত মহির উদ্দিন সরদারের ছেলে। এছাড়াও বিলগাথুয়া বিওপি’র টহল দল বিলগাথুয়া মাঠে অভিযান চালিয়ে ৭৮ বোতল ফেনসিডিল ও ৪ কেজি গাঁজা উদ্ধার করেছে। চরচিলমারী বিওপি’র টহল দলের অভিযানে আকন্দপাড়া মাঠ থেকে ৪১ বোতল জেডি মদ উদ্ধার হয়েছে।

ভেড়ামারায় ৩ মাদক বিক্রেতাকে কারাদন্ড

ভেড়ামারা প্রতিনিধি ॥ মাদকদ্রব্য নিয়ন্ত্রণ অধিদপ্তরের কর্মকর্তাদের নিয়ে কুষ্টিয়ার ভেড়ামারা উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা সোহেল মারুফ গতকাল বৃহস্পতিবার দুপুরে মাদক বিরোধী অভিযান পরিচালনা করেন। এসময়  মাদকদ্রব্যসহ ৩ জনকে আটক করা হয়। আটককৃতরা হলেন, ভেড়ামারার পূর্ব ভেড়ামারা এলাকার ইব্রাহিম খলিল ছেলে  ইমরোজ লিমন (২৮), ক্ষেমিড়দিয়ার দক্ষিণপাড়ারবেলায়েত শাহ ছেলে শুকচাঁদ (৩৬) বাহিরচর ১২ দাগ এলাকার মোস্তাজ আলি ছেলে মাহাবুল (৪০)। তাদের  দোষ স্বীকারোক্তির ভিত্তিতে তাদের প্রত্যেককে মাদকদ্রব্য নিয়ন্ত্রণ আইন ২০১৮ মোতাবেক  ৯ মাস করে বিনাশ্রম কারাদন্ড ও ১হাজার টাকা অর্থদন্ড অনাদায়ে প্রত্যেকের অতিরিক্ত ৫ দিনের বিনাশ্রম কারাদন্ড প্রদান করা হয়। ভেড়ামারা উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা সোহেল মারুফ জানান, এমন অভিযান চলমান থাকবে।

কুষ্টিয়া সদর উপজেলা পরিষদের মাসিক সভা অনুষ্ঠিত

রেজা আহাম্মেদ জয় ॥ কুষ্টিয়া সদর উপজেলা পরিষদের আগস্ট-২০২০ মাসের মাসিক সভা অনুষ্ঠিত হয়েছে। গতকাল বৃহস্পতিবার সকাল ১০টায় কুষ্টিয়া সদর উপজেলা পরিষদের হলরুমে এই মাসিক সভা অনুষ্ঠিত হয়। অনুষ্ঠানে সভাপতিত্ব করেন সদর উপজেলা পরিষদের  চেয়ারম্যান আতাউর রহমান আতা। সভা পরিচালনা করেন উপজেলা নির্বাহী অফিসার জুবায়ের হোসেন চৌধুরী। সভায় উপস্থিত ছিলেন উপজেলা মহিলা ভাইস চেয়ারম্যান শাহানাজ পারভীন রেখা সহ সদর উপজেলার সকল দপ্তরের কর্মকর্তা। এছাড়াও সদর উপজেলার ১৩টি ইউনিয়ন পরিষদের চেয়ারম্যানবৃন্দ অংশগ্রহন করেন।  উপজেলা পরিষদ  চেয়ারম্যান বলেন- এ বছর মুজিব শতবর্ষ বছর, জাতির পিতা বঙ্গবন্ধু  শেখ মুজিবুর রহমানের প্রতি শ্রদ্ধাশীল হওয়ার আহব্বান করেন। করোনা সম্পর্কে তিনি সকলকে সচেতন হতে বলেন। এছাড়া সভাপতি সভায় উপস্থিত সকলকে তাদের নিজের উপর অর্পিত দায়িত্ব সুষ্ঠু ও সুন্দরভাবে পালনের এবং সঠিক তথ্য প্রদানের পরামর্শ দেন।