বন্যায় ক্ষতিগ্রস্ত সাড়ে ৫৪ লাখ মানুষ

ঢাকা অফিস ॥ দেশের উত্তর, উত্তর-পূর্বাঞ্চল ও মধ্যাঞ্চলে বিস্তৃত বন্যায় এ পর্যন্ত অর্ধকোটিরও বেশি মানুষ ক্ষতিগ্রস্ত হয়েছে। তবে এখন বন্যা পরিস্থিতি ক্রম উন্নতির দিকে। এর মধ্যেই ফের ব্রহ্মপুত্র নদের পানি বাড়তে শুরু করেছে। গতকাল মঙ্গলবার দুর্যোগ ব্যবস্থাপনা ও ত্রাণ মন্ত্রণালয়ের জাতীয় দুর্যোগ সাড়াদান ও সমন্বয় কেন্দ্র এবং পানি উন্নয়ন বোর্ডের বন্যা পূর্বাভাস ও সতর্কীকরণ কেন্দ্র থেকে এসব তথ্য জানা গেছে। দুর্যোগ সাড়াদান ও সমন্বয় কেন্দ্রের সর্বশেষ সোমবারের প্রতিবেদন অনুযায়ী, বন্যায় দেশের ৩৩টি জেলার ৯ লাখ ৭৪ হাজার ৩১৩টি পরিবার পানিবন্দি হয়ে পড়েছে। এসব পরিবারের ৫৪ লাখ ৫১ হাজার ৫৮১ জন মানুষ ক্ষতিগ্রস্ত হয়েছে। বন্যায় এ পর্যন্ত মারা গেছেন ৪৩ জন। ১৬৫টি উপজেলা বন্যাকবলিত হয়েছে। উপদ্রুত ইউনিয়নের সংখ্যা এক হাজার ৬৬টি। মারা যাওয়াদের বেশিরভাগই শিশু। তারা পানিতে ডুবে মারা গেছে। জামালপুরে সবচেয়ে বেশি ১৫ জন বন্যায় পানিতে ডুবে মারা গেছেন। লালমনিরহাট, কুড়িগ্রাম, গাইবান্ধা, নীলফামারী, রংপুর, সুনামগঞ্জ, সিরাজগঞ্জ, বগুড়া, জামালপুর, সিলেট, টাঙ্গাইল, রাজবাড়ী, মাদারীপুর, মানিকগঞ্জ, ফরিদপুর, নেত্রকোনা, নওগাঁ, শরীয়তপুর, ঢাকা, মুন্সিগঞ্জ, কিশোরগঞ্জ, ব্রাহ্মণবাড়িয়া, চাঁদপুর, নোয়াখালী, লক্ষ্মীপুর, নাটোর, হবিগঞ্জ, ময়মনসিংহ, রাজশাহী, মৌলভীবাজার, গাজীপুর, গোপালগঞ্জ ও পাবনা জেলা বন্যাকবলিত হয়েছে বলে জানিয়েছে দুর্যোগ ব্যবস্থাপনা ও ত্রাণ মন্ত্রণালয়। বন্যাদুর্গত এলাকায় এ পর্যন্ত ১৯ হাজার ৫০০ টন ত্রাণের চাল, চার কোটি ২৭ লাখ টাকা, শিশুখাদ্য কেনা বাবদ এক কোটি ৫৪ লাখ টাকা, গো-খাদ্য কেনা বাবদ তিন কোটি ৩০ লাখ টাকা বরাদ্দ দেয়া হয়েছে। এ ছাড়া এক লাখ ৬৮ হাজারটি শুকনা খাবারের প্যাকেট, ৪০০ বান্ডিল ঢেউটিন এবং গৃহ নির্মাণের জন্য ১২ লাখ টাকা বরাদ্দ দেয়া হয়েছে বলেও জানিয়েছে মন্ত্রণালয়। দুর্যোগ প্রতিবেদনে জানানো হয়েছে, বন্যাকবলিত ৩৩টি জেলায় এক হাজার ২৯৫টি আশ্রয় কেন্দ্র খোলা হয়েছে। এসব আশ্রয় কেন্দ্রে ৪০ হাজার ৩৬০ জন মানুষ আশ্রয় নিয়েছেন। আশ্রয় কেন্দ্রে আনা গবাদি পশুর সংখ্যা ৬৭ হাজার ৪০৮টি। পানি বাড়ছে ব্রহ্মপুত্রে: পানি উন্নয়ন বোর্ডের বন্যা পূর্বাভাস ও সতর্কীকরণ কেন্দ্রের মঙ্গলবারের তথ্য অনুযায়ী, গতকাল মঙ্গলবার ৬টি নদীর পানি সাতটি পয়েন্টে বিপৎসীমার ওপর দিয়ে প্রবাহিত হচ্ছে। গুড় নদীর পানি সিংড়া, ধলেশ্বরী নদীর পানি এলাসিন ও জাগিরে, তুরাগ নদীর পানি মিরপুর, টঙ্গী খালের পানি টঙ্গী, কালীগঙ্গার পানি তারাঘাট এবং পদ্মার পানি গোয়ালন্দে বিপৎসীমার ওপর দিয়ে প্রবাহিত হচ্ছে। বন্যা সতর্কীকরণ কেন্দ্র জানিয়েছে, ব্রহ্মপুত্র নদের পানির বৃদ্ধি পাচ্ছে, অপরদিকে যমুনা নদীর পানি কমছে। আগামী ৪৮ ঘণ্টায় ব্রহ্মপুত্রের পানি বৃদ্ধি অব্যাহত থাকতে পারে এবং আগামী ২৪ ঘণ্টায় যমুনা নদীর পানি স্থিতিশীল থাকতে পারে। বন্যা পূর্বাভাস কেন্দ্র আরও জানিয়েছে, পদ্মা নদীর পানি কমছে। আগামী ৪৮ ঘণ্টা পর্যন্ত তা অব্যাহত থাকতে পারে। কুশিয়ারা ছাড়া উত্তর-পূর্বাঞ্চলের মেঘনা অববাহিকার প্রধান নদীরগুলোর পানি কমছে, যা আগামী ২৪ ঘণ্টা পর্যন্ত অব্যাহত থাকতে পারে। এছাড়া আগামী ২৪ ঘণ্টায় নাটোর, মানিকগঞ্জ, রাজবাড়ী এবং ফরিদপুর জেলার বন্যা পরিস্থিতির উন্নতি হতে পারে। একই সঙ্গে, এ সময়ে ঢাকা সিটি করপোরেশন সংলগ্ন নিম্নাঞ্চলে বন্যা পরিস্থিতির উন্নতি হতে পারে বলেও জানিয়েছে বন্যা পূর্বাভাস কেন্দ্র। ভারী বৃষ্টি ও উজান থেকে নেমে আসা পানির কারণে দেশের উত্তরাঞ্চল, উত্তর-পূর্বাঞ্চল ও মধ্যাঞ্চলে বন্যা দেখা দিয়েছে। গত ২৬ জুন থেকে বন্যা শুরু হয়। এরপর পরিস্থিতির কিছু উন্নতি হওয়ার পর ১১ জুলাই থেকে দ্বিতীয় দফায় পানি বাড়ে। সর্বশেষ ২১ জুলাই থেকে তৃতীয় দফায় পানি বাড়তে শুরু করে।

মেহেরপুরে বিবাহ বিচ্ছেদ বেড়েছে 

মেহেরপুর প্রতিনিধি ॥ মেহেরপুরে বিবাহ বিচ্ছেদ বেড়েছে। পরিবারের সম্মতি ও কখনও ভালোবেসে বিবাহের ঘটনা ঘটলেও। অধিকাংশ বিবাহ বিচ্ছেদের মতো ঘটনা ঘটছে প্রায়ই। গত এক দশকে বদলে গেছে (তালাক) বিবাহ-বিচ্ছেদের ধরণ। আগেকার দিনে ৭০ শতাংশ তালাকের ঘটনা ঘটতো স্বামী কর্তৃক স্ত্রী তালাক প্রদান। কিন্তু বর্তমান তার ভিন্নতা দেখা যাচ্ছে। এখন ৮০ শতাংশ স্ত্রী কর্তৃক স্বামী তালাকের ঘটনা ঘটছে অহরোহ।  মেহেরপুর জেলা রেজিষ্ট্রারের তথ্যানুযায়ী জানা যায়, গত এক বছরে মেহেরপুরে বেড়েছে তালাকের সংখ্যা। এর মধ্য স্ত্রী কর্তৃক স্বামী তালাকের সংখ্যা বেশি। গত ২০১৯ সালের জানুয়ারী থেকে ডিসেম্বর পর্যন্ত মেহেরপুরের ৩টি উপজেলায় তালাক রেজিস্ট্রি হয়েছে ১ হাজার, ৪৭৪টি। এর মধ্য স্ত্রী কর্তৃক তালাকের সংখ্যা ৬১৮টি। স্বামী কর্তৃক তালাকের সংখ্যা ৫৩৬টি। এবং উভয়ের সম্মতিতে তালাকের সংখ্যা ৩২০টি। এছাড়াও চলতি বছরে বেশ কিছু তালাকের ঘটনা ঘটেছে।            অনুসন্ধানে জানা যায়, মেহেরপুর সদর উপজেলা, গাংনী ও মুজিবনগর উপজেলার বিভিন্ন গ্রামে প্রতিনিয়ত বিয়ে হচ্ছে। অধিকাংশ বিয়েই অপ্রাপ্ত বয়সে। তাই অভিভাবকরা কোন রেজিষ্ট্রি ছাড়াই এসব বিয়ে রাতের আঁধারে সম্পন্ন করছেন। এ ধরণের বিয়ের পর ছেলে- মেয়েদের মধ্য মনোমালিন্যের কারণে বিবাহ বিচ্ছেদ ঘটছে। যা সরকারী রেজিষ্ট্রির বাইরে।  মেহেরপুর সরকারী কলেজের রাষ্ট্রবিজ্ঞান বিভাগের সহযোগি অধ্যাপক আব্দুল্লাহ-আল আলামিন ধুমকেতু জানান, পারিবারিক বন্ধন হ্রাস, মাদকাশক্ত, স্ত্রীদের পরকীয়া, অর্থনৈতিক সমস্যার কারণে বিবাহ বিচ্ছেদ ঘটছে।

ঝিনাইদহে করোনায় পুলিশ কর্মকর্তার মৃত্যু, নতুন আক্রান্ত ২১

ঝিনাইদহ প্রতিনিধি ॥ করোনা ভাইরাস সংক্রমণে আক্রান্ত হয়ে বাংলাদেশ পুলিশের আরও এক গর্বিত সদস্য এএসআই (সশস্ত্র) দলিল উদ্দিন বিশ্বাস (৫৮) করোনা উপসর্গ নিয়ে মৃত্যু হয়েছে। সে যশোর জেলার কোতয়ালি থানার নওদা গ্রামের বাসিন্দা ও ঝিনাইদহ পুলিশ লাইন্সে কর্মরত ছিলেন। মঙ্গলবার নতুন করে জেলায় আরও ২১ জন করোনায় আক্রান্ত হয়েছে। খোজ নিয়ে যানা যায়, করোনায় আক্রান্ত হয়ে তিনি গত ২৫ জুলাই রাজারবাগ  কেন্দ্রীয় পুলিশ হাসপাতালে ভর্তি হন। তাকে নিবিড় পরিচর্যা কেন্দ্রে (আইসিইউ) রেখে চিকিৎসা দেওয়া হয়। পরে অবস্থার অবনতি হলে তাকে লাইফ সাপোর্টে রাখা হয়। সোমবার দিবাগত রাতে করোনার সাথে যুদ্ধে  হেরে গিয়ে তিনি মৃত্যুবরণ করেন। বাংলাদেশ পুলিশের ব্যবস্থাপনায় মরদেহ মরহুমের গ্রামের বাড়ি পাঠানো হয়েছে। সেখানে জেলা পুলিশের ঊর্ধ্বতন কর্মকর্তাদের উপস্থিতিতে ধর্মীয় বিধান অনুযায়ী পারিবারিক কবরস্থানে মরদেহ দাফন করা হয়েছে। করোনায় বাংলাদেশ পুলিশের গর্বিত সদস্য এএসআই (সশস্ত্র) দলিল উদ্দিন বিশ্বাসের মৃত্যুতে গভীর শোক ও দুঃখ প্রকাশ করেছেন ঝিনাইদহ পুলিশ সুপার হাসানুজ্জামান (পিপিএম)সহ পুলিশ সদস্যবৃন্দ।

করোনামুক্ত বিশ্বের পথ দেখাবে রাশিয়ান ভ্যাকসিন – পুতিন

ঢাকা অফিস ॥ বিশ্বের প্রথম করোনাভাইরাসের ভ্যাকসিন আনতে চলেছে রাশিয়া। বুধবার বহুল প্রতীক্ষিত করোনার ভ্যাকসিন নথিভুক্ত করতে যাচ্ছে রাশিয়া সরকার। রাশিয়ার দাবি তাদের তৈরি ভ্যাকসিনের মাধ্যমে করোনার বিরুদ্ধে প্রতিরোধ গড়ে তোলা সম্ভব। এদিকে মঙ্গলবার দেশটির প্রেসিডেন্ট ভ­াদিমির পুতিন তার ফেসবুক পোস্টে জানিয়েছেন, কোভিড-১৯’র ভ্যাকসিন আবিষ্কারের পথে রুশ বিজ্ঞানীরা এরইমধ্যে পরীক্ষা-নিরীক্ষার সব ধাপ পার হয়ে এসেছেন। তারা প্রমাণ করেছেন এই ভ্যাকসিন নিরাপদ ও এটি কার্যকর। রুশ প্রেসিডেন্ট আরও বলেন, আমাদের ওষুধটি এই মহামারীর বিরুদ্ধে খুব কার্যকর এবং এটি শুধু রাশিয়ার জন্য আশা জাগায়নি বরং গোটা বিশ্বের জন্যই সুখবর নিয়ে এসেছে। একসময় সোভিয়েত ইউনিয়নের স্যাটেলাইটই মানবজাতিকে মহাশূন্যে নিয়ে গিয়েছিল। এবার রাশিয়ান এই ভ্যাকসিনটিও করোনামুক্ত বিশ্বের পথ দেখাবে। রাশিয়ার স্বাস্থ্য প্রতিমন্ত্রী ওলেগ গ্রিদনেভ জানিয়েছেন, আগামী ১২ আগস্ট সরকারিভাবে ভ্যাকসিনের রেজিস্ট্রেশন দেওয়া হবে। আর আগে শেষ মুহূর্তে দেখে নেওয়া হচ্ছে এই ভ্যাকসিন মানুষের শরীরে নিরাপদ কি না। সবার আগে স্বাস্থ্যকর্মী ও বয়ষ্কদের এই ভ্যাকসিন দেওয়া হবে। চলতি বছরেই সাড়ে চার কোটির ভ্যাকসিন তৈরির কাজ করবে রাশিয়া। তবে এই ভ্যাকসিন নিয়ে সন্দেহ প্রকাশ করেছে আমেরিকা।

করোনা আক্রান্ত হয়ে হাসপাতালে ভর্তি ভারতের সাবেক রাষ্ট্রপতি

ঢাকা অফিস ॥ প্রণব মুখার্জির মস্তিস্কের অস্ত্রোপচার করা হয়েছে। আপাতত তিনি ভেন্টিলেটর সাপোর্টে রয়েছেন। সোমবার রুটিন চেকআপ করাতে হাসপাতালে গেলে ৮৪ বছর বয়সী প্রণব মুখার্জির দেহে মহামারি করোনাভাইরাসের সংক্রমণ শনাক্ত হয়। প্রধান বিরোধী দল কংগ্রেসের বর্ষীয়ান এই নেতা এক টুইট বার্তায় নিজের করোনা আক্রান্ত হওয়ার কথা জানিয়ে লেখেন, ‘আমি কোভিড-১৯-এ আক্রান্ত হয়েছি। অন্য কাজে হাসপাতালে যাওয়ার পর করোনা পজিটিভ ধরা পড়ে। গত সপ্তাহে আমার সংস্পর্শে আসা সবাইকে সেলফ আইসোলেশনে থাকার অনুরোধ করছি’। কলকাতার সংবাদমাধ্যমগুলো জানাচ্ছে, প্রণব মুখার্জি এখন আর্মি রিসার্চ অ্যান্ড রেফারাল হাসপাতালে ভর্তি রয়েছেন। সোমবার সেখানেই তার মস্তিস্কে সফল অস্ত্রোপচার হয়েছে। জমাট বাঁধা রক্ত সরাতেই এই সার্জারি বলে জানা গেছে। আপাতত চিকিৎসকদের সার্বক্ষণিক তত্ত্বাবধানে রয়েছেন তিনি। ২০১৪ সালে হার্টের সমস্যা ধরা পড়ার পর থেকে রুটিন স্বাস্থ্য পরীক্ষার অংশ হিসেবে সোমবার হাসপাতালে যাওয়ার পর প্রণব মুখার্জির দেহে করোনার সংক্রমণ শনাক্ত হয়। ভারতের সাবেক এই রাষ্ট্রপতি ছাড়াও দেশটির কেন্দ্রীয় স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী অমিত শাহ এবং আরও বেশ কয়েকটি রাজ্যের মুখ্যমন্ত্রী করোনায় আক্রান্ত হয়েছেন। করোনায় আক্রান্ত হওয়ার খবর জানার পর প্রণব মুখার্জির মেয়ে শর্মিষ্ঠা মুখার্জির সঙ্গে কথা বলেন ভারতের বর্তমান রাষ্ট্রপতি রামনাথ কোবিন্দ। এ ছাড়া প্রণব মুখার্জির করোনায় আক্রান্তের খবর প্রকাশ হতেই কংগ্রেসসহ বিভিন্ন দলের নেতাকর্মীরা তার দ্রুত সুস্থতা কামনা করে সামাজিক মাধ্যমে পোস্ট করেন।

সীমিত পরিসরে জন্মাষ্টমী উদযাপন, করোনা থেকে মুক্তির প্রার্থনা

ঢাকা অফিস ॥ স্বাস্থ্যবিধি মেনে শ্রীকৃষ্ণের শুভ জন্মতিথি জন্মাষ্টমী যথাযোগ্য মর্যাদা, ধর্মীয় ভাবগাম্ভীর্য এবং আনন্দ-উৎসবের মধ্য দিয়ে গতকাল মঙ্গলবার উদযাপন করছেন ভক্তরা। একই সাথে করোনাভাইরাসের মহামারীতে জীবনহানীসহ আর্থিক-সামাজিক দুর্বিপাক থেকে মুক্তির জন্য ¯্রষ্টার কৃপাদৃষ্টি প্রার্থনা করেন সনাতন ধর্মাবলম্বীরা। প্রতিবছর দেশের সনাতন হিন্দু সম্প্রদায় ধর্মীয় ভাবগাম্ভীর্য ও আনন্দ উৎসবের মধ্য দিয়ে জন্মাষ্টমী পালন করেন। তবে এবার করোনাভাইরাসের প্রাদুর্ভাবের কারণে জন্মাষ্টমী অনুষ্ঠান যথারীতি ধর্মীয় রীতি অনুসরণ করে স্বাস্থ্যবিধি মেনে পূজা-অর্চনার মাধ্যমে পালিত হয়েছে। সকল অনুষ্ঠানমালা মন্দিরাঙ্গনে সীমাবদ্ধ ছিল। সমাবেশ, শোভাযাত্রা বা মিছিল এবার হয়নি। শুভ জন্মাষ্টমী উপলক্ষে রাষ্ট্রপতি মো. আবদুল হামিদ ও প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা পৃথক বাণীতে সনাতন ধর্মাবলম্বীদের আন্তরিক শুভেচ্ছা জানিয়েছেন। এ উপলক্ষে গতকাল মঙ্গলবার ছিল সরকারি ছুটি। বাংলাদেশ বেতার, বাংলাদেশ টেলিভিশনসহ বেসরকারি স্যাটেলাইট চ্যানেলে এদিন বিশেষ অনুষ্ঠান সম্প্রচারিত হয়্ এবছর গতকাল মঙ্গলবার সকাল ৯টা ৬ মিনিট থেকে শুরু করে আজ বুধবার বেলা ১১টা ১৬ মিনিট পর্যন্ত জন্মাষ্টমী তিথি থাকায় অনেকে এদিনও জন্মাষ্টমীর আনুষ্ঠানিকতা পালন করবেন। সকাল থেকে জন্মাষ্টমী উপলক্ষে জাতীয় মন্দির ঢাকেশ্বরী প্রাঙ্গণে শুরু হয় গীতাযজ্ঞ। রাতে অনুষ্ঠিত হয় কৃষ্ণ পূজা। সকালে অনুষ্ঠিত গীতাযজ্ঞ পরিচালনা করেন চট্টগ্রামের সীতাকুন্ড মঠ ও মিশনের অধ্যক্ষ স্বামী তপনানন্দ গিরি মহারাজ। তিনি বলেন,ভগবান যুগে-যুগে দুষ্টের দমন ও শিষ্টের পালনের জন্য আবির্ভূত হয়েছেন। এই করোনাভাইরাস মহামারীকালে আমরা আজ ভগবান শ্রীকৃষ্ণের আরাধনা করছি। তিনি জরা, ব্যাধিমুক্ত এক পৃথিবী আমাদের দেবেন। আমাদের দেশসহ পৃথিবীর সব মানুষকে করোনা মহামারি থেকে রক্ষা করবেন। অজ্ঞানতার অন্ধকার থেকে তিনি গোটা বিশ্বকে মুক্ত করবেন। মহামারীকাল শেষ হলে মানুষে মানুষে প্রীতি ও সদ্ভাবে গোটা পৃথিবী সুন্দরতম হয়ে উঠুক, আজ সে প্রার্থনা করেছি, বলেন তিনি। ঢাকা রামকৃষ্ণ মঠে এ উপলক্ষে সকাল ৯ টা থেকে বেলা ১১টা ৩০ মিনিট পর্যন্ত গীতা পাঠের আয়োজন করা হয়। গীতা পাঠ করেন স্বামী দেবধ্যানানন্দ ও ব্রক্ষ্মচারী ভাস্কর। অন্যান্য কর্মসূচির মধ্যে ছিল ভজন, দুপুরে মধ্যাহ্নে প্রসাদ বিতরণ, রাত ৭ টা ৪০ মিনিটে গুরু মহারাজের বাণীবর্চন ও রাত ৮ টায় শ্রীকৃষ্ণ পূজা। বিভিন্ন মঠ মন্দির ছাড়াও রাতে ঘরে-ঘরে অনুষ্ঠিত হয় কৃষ্ণ পূজা। সনাতন ধর্মাবলম্বীদের বিশ্বাস, সাড়ে পাঁচ হাজার বছরেরও আগে দ্বাপর যুগে ভাদ্র মাসের শুক্লপক্ষের অষ্টমী তিথিতে অশুভ শক্তিকে দমন করে সত্য ও সুন্দরের প্রতিষ্ঠায় ধরাধামে ভগবান শ্রীকৃষ্ণের আবির্ভাব ঘটেছিল। তাঁর আবির্ভাব বিশ্বের ইতিহাসে এক নতুন যুগের সূচনা করে। নির্যাতিত নিপীড়িত মানুষকে রক্ষায় তিনি পরিত্রাতার ভূমিকা পালন করেন, অন্ধকার সরিয়ে পৃথিবীকে আলোয় উদ্ভাসিত করেন। তাদের আরো বিশ্বাস, তিনি অত্যাচারী ও দুর্জনের বিরুদ্ধে শান্তিপ্রিয় ভালো মানুষের অধিকার প্রতিষ্ঠায় ব্রতী হন। দুষ্টের দমন করতে একই ভাবে যুগে-যুগে ভগবান শ্রীকৃষ্ণ পৃথিবীতে আসেন এবং সত্য ও সুন্দর ও ন্যায় প্রতিষ্ঠা করেন।

 

বঙ্গবন্ধু হত্যা ছিল সদ্য স্বাধীন রাষ্ট্রকে হত্যার ষড়যন্ত্রের অংশ – তথ্যমন্ত্রী

ঢাকা অফিস ॥ তথ্যমন্ত্রী ও আওয়ামী লীগের যুগ্ম সাধারণ সম্পাদক হাছান মাহমুদ বলেছেন, বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানকে হত্যা ছিল সদ্য স্বাধীন বাংলাদেশ রাষ্ট্রকে হত্যার ষড়যন্ত্রের অংশ। গতকাল মঙ্গলবার রাজধানীর কাকরাইলে জাতীয় শোক দিবস উপলক্ষে ইনস্টিটিউশন অব ডিপ্লোমা ইঞ্জিনিয়ারস, বাংলাদেশ (আইডিইবি) আয়োজিত এক আলোচনা সভায় প্রধান অতিথির বক্তব্যে তিনি এ কথা বলেন। তথ্যমন্ত্রী বলেন, যেসব দেশি-বিদেশি চক্র বাংলাদেশের স্বাধীনতা চায়নি, তারা ভেবেছিল বাংলাদেশ কখনো স্বাধীন রাষ্ট্র হিসেবে মাথা তুলে দাঁড়াতে পারবে না। কিন্তু স্বাধীনতার পর মাত্র সাড়ে তিন বছরের মাথায় যখন বঙ্গবন্ধুর নেতৃত্বে একটি যুদ্ধবিধ্বস্ত দেশ তিন কোটি গৃহহারা মানুষকে পুনর্বাসন করে পোড়ামাটির ধ্বংসস্তুপ থেকে উঠে দাঁড়িয়ে, খাদ্যে স্বয়ংসম্পূর্ণ হয়ে ৭.৪ শতাংশ অর্থনৈতিক প্রবৃদ্ধি অর্জন করে সমৃদ্ধির পথে এগুতে শুরু করলো, তখন সেই সদ্য স্বাধীন রাষ্ট্রকে হত্যার ষড়যন্ত্রের অংশ হিসেবে নির্মমভাবে বঙ্গবন্ধু ও তার পরিবারের সদস্যদের হত্যা করা হয়। মন্ত্রী এ সময় ১৯৭৫ সালের ১৫ আগস্ট ঘাতকদের হাতে শহীদ বঙ্গবন্ধু ও তার পরিবারের সকল সদস্য, শহীদ জাতীয় চার নেতা ও মুক্তিযুদ্ধের সকল শহীদের প্রতি গভীর শ্রদ্ধা নিবেদন করে তাদের আত্মার শান্তিকামনা করেন। এ দিন জন্মাষ্টমী উপলক্ষে সনাতন ধর্মের সবাইকে শুভেচ্ছা জানান তিনি। হাছান মাহমুদ বলেন, মাত্র সাড়ে তিন বছরের মধ্যে বঙ্গবন্ধু আইন করে আমাদের তেল ও গ্যাসক্ষেত্রগুলোকে বিদেশি মালিকানা থেকে উদ্ধার করে দেশের মালিকানায় নিয়ে আসেন। আজ আমরা আন্তর্জাতিক আদালতের রায়ে ১ লাখ ১৮ হাজার বর্গ কিলোমিটারেরও বেশি সমুদ্রসীমার মালিক হয়েছি। এটি কখনোই হতো না, যদি জাতির পিতা বঙ্গবন্ধু জাতিসংঘের সমুদ্রসীমা সংক্রান্ত পরিষদ আনক্লস- এর সদস্য না হতেন, সেই সংক্রান্ত চুক্তি স্বাক্ষর না করতেন। আর যে ছিটমহল চুক্তিকে অনেকে গোলামির চুক্তি বলতেন, ১৯৭৪ সালে বঙ্গবন্ধুর করা সেই চুক্তির আলোকেই আজ আমাদের স্থলসীমা বেড়েছে। আইডিইবির কেন্দ্রীয় নির্বাহী কমিটির সভাপতি এ কে এম এ হামিদের সভাপতিত্বে কমিটির সাধারণ সম্পাদক মো. শামসুর রহমান, ডিপ্লোমা ইঞ্জিনিয়ারস সার্ভিস অ্যাসোসিয়েশন সমন্বয় পরিষদের আহ্বায়ক মো. ফজলুর রহমান, বঙ্গবন্ধু ডিপ্লোমা প্রকৌশলী পরিষদের সাধারণ সম্পাদক এবং আইডিইবি সহসভাপতি এ কে এম আবদুল মোতালেব, ঢাকা পলিটেকনিক ইনস্টিটিউট শিক্ষক সমিতির সাধারণ সম্পাদক মো. সাইফুল ইসলাম, কারিগরি ছাত্র পরিষদের আহ্বায়ক মেহেদী হাসান অনুষ্ঠানে বক্তব্য দেন। সভার শুরুতে হাফেজ মো. রফিকুল ইসলাম পবিত্র কোরআন ও পুরোহিত রতন চক্রবর্তী পবিত্র গীতা থেকে উদ্ধৃতি পাঠ করেন।

‘ইয়াসিন-মাহমুদা কারিগরি প্রশিক্ষণ কেন্দ্র’র নির্মাণ কাজের উদ্বোধনকালে ডাঃ ইফতেখার মাহমুদ

জাতির জনককে হারিয়ে অভিভাবকহীন হয়ে পড়েছিল জনগণ

নিজ সংবাদ ॥ ‘ইয়াসিন-মাহমুদা কারিগরি প্রশিক্ষণ কেন্দ্র’র নির্মান কাজের শুভ উদ্বোধন হয়েছে। গতকাল দুুপুরে কুষ্টিয়ার কৃতিসন্তান কুষ্টিয়া মেডিকেল কলেজের প্রতিষ্ঠাতা প্রিন্সিপাল প্রফেসর ডা: ইফতেখার মাহমুদ নিজ পিত্রালয় মিরপুর উপজেলার সাহেবনগর গ্রামে এই কারিগরি প্রশিক্ষণ কেন্দ্রের নির্মাণ কাজের আনুষ্ঠানিক উদ্বোধন করেন। এসময় উপস্থিত থেকে এলাকাবাসীর মধ্যে বক্তব্য রাখেন বীর মুক্তিযোদ্ধা সরফ উদ্দিন টিপু, হায়দার আলী মল্লিক, তানজিলুর রহমান, ওয়ার্ড আওয়ামীলীগ সভাপতি শরিফুল আলম মঞ্জু, গোলাম হায়দার, শাহজামাল মল্লিক, মিজানুর রহমান মল্লিক, মওদুদ আহমেদ রাজিব প্রমুখ। এসময় প্রধান অতিথির বক্তব্যে ডাঃ ইফতেখার মাহমুদ বলেন- আগষ্ট মাস শোকের মাস। পাকিস্তানী পরাজিত শক্তির নীল নকঁশায় জাতির জনককে পরিবারসহ এই মাসের ১৫তারিখে হত্যা করেছিল। যা ইতিহাসের  হৃদয় বিদারক ঘটনা ছিল। বাঙ্গালী জাতি হিসেবে আমরা সকলেই জাতির জনককে হারিয়ে অভিভাবকহীন হয়ে পড়েছিলাম। তিনি আরো বলেন- বঙ্গবন্ধুর স্বপ্নের বাংলাদেশে তাঁর অস¤পূর্ণ স্বপ্ন পুরনে তাঁর কন্যা শেখ হাসিনা নিরলসভাবে কাজ করে যাচ্ছেন। দেশ আজ উন্নয়নের শিখরে পৌছে গেছে। দেশের এই উন্নয়নের ধারাবাহিকতাকে ধরে

রাখতে সরকারকে সহযোগিতা করতে হবে। তিনি বলেন- বৈশ্বিক করোনা মোকাবিলায় প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার নেতৃত্বে বাংলাদেশ আওয়ামীলীগের নেতাকর্মীদের স্বতস্ফুর্ত অংশগ্রহনে অনেকটা সফলতার পরিচয় দিয়েছে। করোনাকালীন দেশের মানুষের দুঃখ দুর্দশা লাঘবে সরকারের নেয়া সকল পদক্ষেপ ইতিবাচক হিসেবে বহিঃবিশ্বে ব্যাপক প্রশংসিত হয়েছে। তিনি আশাবাদ ব্যক্ত করে বলেন- করোনা এক দিন আমাদের কাছ থেকে বিদায় নেবে তার পর আমরা আবারো পুরোদমে অর্থনৈতিক শক্তির গতিবেগ সচল করতে পারবো- ইনশাআল্লাহ। ডাঃ ইফতেখার মাহমুদ বলেন, এলাকার উন্নয়নে আমি সম্পৃক্ত হতে চাই। তারই ধারাবাহিকতায় আমাদের নিজস্ব জমিতে পিতা মাতার নামানুসারে ‘ইয়াসিন-মাহমুদা কারিগরি প্রশিক্ষণ কেন্দ্র‘র নির্মান কাজ শুরু করতে যাচ্ছি। তিনি বলেন, এলাকার শিক্ষা উন্নয়নে এই প্রশিক্ষণ কেন্দ্রটি গুরুত্বপুর্ন ভুমিকা রাখবে বলে আশা রাখি। তিনি বলেন,আমি বর্তমানে অবসরে আছি আমার অফুরন্ত সময় রয়েছে। আল্লাহপাক আমাকে এবং আমার পরিবারকে অনেক কিছু দিয়েছেন বাকী সময়টা আমি মানুষর কল্যানে কাজ করতে চাই। ইতিমধ্যে এলাকার মানুষের মাঝে বিনামুল্যে চিকিৎসা সেবা প্রদান, দুস্থ্যদের সহায়তা প্রদান এবং কৃতি শিক্ষার্থীদের লেখাপড়ায় আগ্রহী করে তুলতে তাদের সম্বর্ধনা প্রদান ও আর্থিক সহযোগিতা করে আসছি। আগামীতে আমাদের এই কার্যক্রম আরো বড় পরিসরে শুরু করবো ইনশাআল্লাহ। তিনি আরো বলেন, সৃষ্টির শ্রেষ্ট জীব মানুষ হিসেবে আমাদের সমাজের জন্য অনেক কিছু করনীয় রয়েছে। আর আমরা এইকাজগুলো থেকে বিরত থাকতে পারি না। একদিন আমাদের সবাইকে সৃষ্টিকর্তার নিকট জবাবদিহি করতে হবে। তিনি আরো বলেন, সরকার কারিগরি শিক্ষা ব্যবস্থার উপর জোর দিয়েছে। কারিগরি শিক্ষার মাধ্যমে একজন মানুষ সত্যিকারের প্রশিক্ষিত কর্মী হিসেবে দেশ ও দেশের বাইরে উপযুক্ত আয়ের ব্যবস্থা করে জীবন নির্বাহ করতে পারেন। সেই  লক্ষ্যে এলাকার সন্তানদের কারিগরি শিক্ষা ব্যবস্থা করতে যাচ্ছি যা সকলের জন্য কল্যাণকর হবে। পরে তিনি মাটি কেটে নির্মাণ কাজের উদ্বোধন করেন। এসময় মহান আল্লার দরবারে সহযোগিতা এবং রহমত কামনায় দোয়া করা হয়। দোয়া পরিচালনা করেন সাহেবনগর মসজিদের ইমাম মাওলানা আলামীন। পরে প্রফেসর ডাঃ ইফতেখার মাহমুদ এলাকার ২শতাধিক মানুষের মাঝে বিনামুল্যে চিকিৎসা সেবা প্রদান করেন। তিনি রোগীদের নিকট থেকে বিভিন্ন সমস্যাদি শোনেন এবং সেই অনুযায়ী ব্যবস্থাপত্র দেন।

আজ থেকে আর হচ্ছে না করোনা বুলেটিন

ঢাকা অফিস ॥ করোনা ভাইরাসের (কোভিড-১৯) বিষয়ে স্বাস্থ্য অধিদপ্তরের নিয়মিত অনলাইন বুলেটিন আজ বুধবার থেকে সাময়িকভাবে বন্ধ হচ্ছে। গতকাল মঙ্গলবার দুপুরে ‘করোনা ভাইরাস সংক্রান্ত’ নিয়মিত অনলাইন স্বাস্থ্য বুলেটিনে স্বাস্থ্য অধিদপ্তরের অতিরিক্ত মহাপরিচালক অধ্যাপক ডা. নাসিমা সুলতানা এ তথ্য জানান। তিনি জানান, স্বাস্থ্য অধিদপ্তরের নিয়মিত অনলাইন স্বাস্থ্য (করোনা) বুলেটিন আর হচ্ছে না। এখন থেকে স্বাস্থ্য অধিদপ্তর থেকে প্রেসবিজ্ঞপ্তির মাধ্যমে দেওয়া হবে। সেই প্রেসবিজ্ঞপ্তিতে সবগুলো তথ্যই থাকবে। তথ্য প্রবাহে কোনো ঘাটতি থাকবে না। তথ্য নিয়মিতভাবে স্বাস্থ্য অধিদপ্তর থেকে পাঠানো হবে। কাজেই বুধবার থেকে নিয়মিত অনলাইন স্বাস্থ্য বুলেটিন বন্ধ থাকবে। স্বাস্থ্য অধিদপ্তর সূত্রে জানা যায়, গত ফেব্রুয়ারির প্রথম সপ্তাহে করোনা ভাইরাস ইস্যুতে প্রথম ব্রিফিং আয়োজন করে জাতীয় রোগতত্ত্ব, রোগ নিয়ন্ত্রণ ও গবেষণা প্রতিষ্ঠান (আইইডিসিআর)। প্রতিষ্ঠানটির পরিচালক অধ্যাপক ডা. মীরজাদী সেব্রিনা ফ্লোরা নিজেই ব্রিফিং করতেন। দেশে করোনারোগী শনাক্ত হওয়ার পর আইইডিসিআরের সঙ্গে স্বাস্থ্য অধিদপ্তরও সরাসরি ব্রিফিংয়ে যুক্ত হয়। এরপর মার্চের শেষের দিকে ডা. ফ্লোরার পরিবর্তে নিয়মিত ব্রিফিং পরিচালনা করতে থাকেন অধিদপ্তরের এমআইএস বিভাগের পরিচালক ডা. হাবিবুর রহমান। বেশ কয়েকদিন বিকেল ৩টায় এই ব্রিফিং অনুষ্ঠিত হলেও পরে দুপুর আড়াইটায় ব্রিফিংয়ের সময় চূড়ান্ত করে দেয় অধিদপ্তর। এপ্রিলের দ্বিতীয় সপ্তাহে ‘ব্রিফিং’কে বাদ দিয়ে ‘বুলেটিন’ আকারে উপস্থাপন করতে শুরু করে অধিদপ্তর। তখন থেকে স্বাস্থ্য বুলেটিনে নিয়মিত তথ্য উপস্থাপন করতেন স্বাস্থ্য অধিদপ্তরের অতিরিক্ত মহাপরিচালক অধ্যাপক নাসিমা সুলতানা।

ভেড়ামারায় সিরাজুল ইসলাম শিক্ষাবৃত্তি প্রদান

আল-মাহাদী ॥ কুষ্টিয়ার ভেড়ামারায় সিরাজুল ইসলাম শিক্ষাবৃত্তি (২য় বারের মত) মেধাবী শিক্ষার্থীদের মাঝে প্রদান করা হয়েছে। গতকাল মঙ্গলবার সকাল ১১ টায় কোদালিয়াপাড়া সরকারী প্রাথমিক বিদ্যালয়ের হলরুমে উক্ত বৃত্তির টাকা প্রদান করা হয়। কোদালিয়াপাড়া সরকারী প্রাথমিক বিদ্যালয়ের ম্যানেজিং কমিটির সভাপতি মোঃ এনামূল হোসেন কবির’র সভাপতিত্বে শিক্ষাবৃত্তি প্রদান অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথি ছিলেন মোঃ সিরাজুল ইসলাম। অনুষ্ঠানে স্বাগত বক্তব্য রাখেন কোদালিয়াপাড়া সরকারী প্রাথমিক বিদ্যালয়ের প্রধান শিক্ষিকা মোছাঃ জুবাইদা খাতুন। বিশেষ বক্তা হিসেবে বক্তব্য রাখেন- বরিয়া সরকারী প্রাথমিক বিদ্যালয়ের সিনিয়র সহকারী শিক্ষিকা মোছাঃ সাবানা আক্তার। প্রভাষক মোঃ আব্দুল মান্নানের উপস্থাপনায় অনুষ্ঠানে আমন্ত্রিত অতিথি ছিলেন, অবসরপ্রাপ্ত ব্যাংকার মোঃ আব্দুল মজিদ বিশ^াস, আওয়ামীলীগ নেতা মোঃ মুজিবুল হক মুকুল, সমাজসেবক মোঃ মাসুদ পারভেজ ও সাংবাদিক এস.এম.আবু ওবাইদা-আল-মাহাদী। এছাড়াও উপস্থিত ছিলেন, কোদালিয়াপাড়া সরকারী প্রাথমিক বিদ্যালয়ের সহকারী শিক্ষক মোঃ আনিসুর রহমান, মোঃ আবুল ফজল, মোঃ বাহার আলী, মোছাঃ আকলিমা সুলতানা প্রমূখ। অনুষ্ঠান শেষে মেধাবী শিক্ষার্থী মোঃ তৌফিক ইবনে মিজানকে ১০ হাজার, মোছাঃ সাদিয়া আক্তারকে ৫ হাজার ও মোছাঃ মায়া খাতুনকে ৫ হাজার টাকার শিক্ষাবৃত্তি তুলে দেন অতিথিবৃন্দ। উল্লেখ্য, সিরাজুল ইসলাম শিক্ষাবৃত্তি’র উদ্যোক্তা ইতালী প্রবাসী মোঃ শামসুল হক আখি করোনা মহামারির লক ডাউন চলাকালীন সময় নিজ গ্রাম কোদালিয়াপাড়াসহ ভেড়ামারা উপজেলার বিভিন্ন এলাকায় খাদ্য সামগ্রীসহ প্রয়োজনীয় জিনিসপত্র ১৫০টি পরিবারের মধ্যে বিতরণ করাসহ বিভিন্ন সামাজিক কর্মকান্ডে দুস্থ ও অসহায়দেরকে সাহায্য সহযোগিতা করেন।

দ্রোহের দেড়যুগ সংখ্যার মোড়ক উন্মোচন ও ই-পেপার উদ্বোধন

খোকসা প্রতিনিধি ॥ সাপ্তাহিক দ্রোহ ১৮ তে পা রাখলো। ১৭ বছর আগে খোকসা থেকে সর্বপ্রথম এবং একমাত্র সংবাদপত্র হিসেবে নিজেকে প্রকাশ করে সত্য সন্ধানী সাপ্তাহিক দ্রোহ। হাটি হাটি পা পা করে শিশু দ্রোহ আজ যুবক, দ্রোহ আজ অষ্টাদশী।মঙ্গলবার সাপ্তাহিক দ্রোহের দেড়যুগ পূর্তি উপলক্ষ্যে সংবাদপত্রের প্রধান কার্য্যলয়ে স্বাস্থ্যবিধি মেনে স্বল্পপরিসরে এক উৎসবের আয়োজন করা হয়। এ উৎসবে উপজেলা নির্বাহী অফিসার মেজবাহ উদ্দিন ফিতা কেটে দেড়যুগ পূর্তির বিশেষ সংখ্যার মোড়ক উন্মোচন এবং অনলাইনের বাটন টিপে ই-পেপারের আনুষ্ঠানিক সম্প্রচার করেন। উপজেলা নির্বাহী অফিসার মেজবাহ উদ্দীন বলেন, খোকসার সাংবাদিকতা একটা মডেল , এই ঐতিহ্যকে ধরে রাখতে হলে এ থানা শহরের সকল সাংবাদিককে সৎ, নিষ্টাবান এবং সত্য প্রকাশে আপোষহীন হতে হবে। তিনি আরও বলেন, একটি  মফস্বল শহর থেকে প্রকাশিত সংবাদপত্র দেড়যুগে যাত্রা শুরু করেছে। এটা আমাকে প্রচন্ডভাবে আন্দোলিত করেছে। সাংবাদিকদের উদ্দেশ্যে তিনি বলেন, সাংবাদিকতা একটি মহৎ পেশা। নিজেদেরকে আরও স্বচ্ছ হয়ে সমাজের দর্পণ স্বরুপ কাজ করার আহবান জানান তিনি। দ্রোহ পত্রিকার সম্পাদকসহ সকলকে তিনি শুভকামনা জানান। অফিসার ইনচার্জ জহুরুল আলম বলেন, বিজ্ঞানমনষ্ক আধুনিক গণতান্ত্রিক মূল্যবোধের প্রতি শ্রদ্ধা রেখেই সাপ্তাহিক দ্রোহ জনমানুষের কল্যাণে প্রকাশনা অব্যাহত রেখেছে। পত্রিকাটির দেড়যুগের এই শুভতিথিতে তিনি দ্রোহ পরিবারের সকলকে শুভকামনা জানান। দ্রোহের সম্পাদক তমা মুন্সীর সভাপতিত্বে এ উৎসবে আরও বক্তব্য রাখেন দ্রোহের স্বপ্নদ্রষ্ঠা আব্দুস সালাম খান, শুভেচ্ছা বক্তব্য রাখেন মুক্তিযুদ্ধ কমান্ডার ফজলুল হক, খোকসা প্রেসক্লাবের সাধারণ সম্পাদক সাইদুল ইসলাম প্রবীন এবং সমাপনী বক্তব্য রাখেন “দ্রোহের” ব্যবস্থাপনা সম্পাদক তাজবির আহম্মেদ রাজা। এ উৎসবে আরও উপস্থিত ছিলেন- দ্রোহের সাব এডিটর সঞ্জয় বিশ্বাস, সাব এডিটর ফাহিম শাওন, চিফ রিপোর্টার মাধুরী মুন্সী, স্টাপ রিপোর্টার সুমন বিশ্বাস, স্টাপ রিপোর্টার নাজমুল হাসান, স্টাপ রিপোর্টার আরিফুল ইসলাম, প্রেসক্লাবের সহ-সভাপতি রঞ্জন ভৌমিক, যুগ্ম সম্পাদক মনিরুল ইসলাম মাসুদ, সজীব খান, স্টাফ রিপোর্টার হুমায়ুন কবীর, স্থানীয় সাংবাদিক ডালিম, মিলন খান, আকরাম হোসেন, লেখক শেখ আব্দুল মান্নানসহ, স্থানীয় ইলেকট্রনিক্স ও প্রিন্ট  মিডিয়ার সাংবাদিকবৃন্দ উপস্থিত ছিলেন।

গণস্বাস্থ্যের প্লাজমা সেন্টার উদ্বোধন ১৫ আগস্ট

ঢাকা অফিস ॥ জাতির জনক বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের স্মৃতিকে স্মরণ করে আগামী ১৫ আগস্ট সকাল ১১ টায় রাজধানীর ধানমন্ডির গণস্বাস্থ্য নগর হাসপাতালে করোনা রোগীদের চিকিৎসায় প্লাজমা সেন্টার উদ্বোধন করা হবে। গতকাল মঙ্গলবার গণস্বাস্থ্য কেন্দ্রের মিডিয়া উপদেষ্টা জাহাঙ্গীর আলম মিন্টুর পাঠানো এক প্রেস বিজ্ঞপ্তিতে এ তথ্য জানানো হয়। এতে বলা হয়, ধানমন্ডির গণস্বাস্থ্য নগর হাসপাতালে প্লাজমা সেন্টার, ব্লাড ব্যাংক অ্যান্ড ট্রান্সফিউশন সেন্টারের উদ্বোধন করবেন ঢাকা মেডিকেল কলেজ হাসপাতালের হেমাটোলজি বিভাগের প্রধান ও প্লাজমা থেরাপির জন্য গঠিত কমিটির প্রধান অধ্যাপক ডা. এম এ খান। এ সময় আরও উপস্থিত থাকবেন গণস্বাস্থ্যের প্রতিষ্ঠাতা ডা. জাফরুল্লাহ চৌধুরীসহ গণস্বাস্থ্য কেন্দ্রের অন্যান্য ট্রাস্টি। প্রথম দিকে, প্রতিদিন ২৫ জনকে প্লাজমা দেওয়া হবে। সেপ্টেম্বর মাস থেকে প্রতিদিন ৫০ জনকে প্লাজমা দেওয়া হবে এবং অতিরিক্ত ৫০ জনকে প্যাকড সেল, প্লাটিলেট, বিভিন্ন ব্লাড ফ্যাকটরস এবং থ্যালাসেমিয়া ও, হিমোগ্লোবিন প্যাথির জন্য প্রয়োজনীয় রক্ত সঞ্চালনের ব্যবস্থা করা হবে। গণস্বাস্থ্য কেন্দ্রের সহযোগী অধ্যাপক ডা. কোরেশী বলেন, করোনা ভাইরাস আক্রান্ত রোগীদের জন্য গণস্বাস্থ্য নগর হাসপাতালে কোভিড প্লাজমা তৈরি করা হবে। ডোনারের কাছ থেকে আমরা যে ব্লাড নেবো, সেই ব্লাড থেকে এ প্লাজমা তৈরি করা হবে। প্লাজমা তৈরিতে শুধু আমাদের যে খরচ হবে সেই মূল্যে কোভিড রোগীদের আমরা এ প্লাজমা দেবো।

ট্রাম্পের সংবাদ সম্মেলন চলাকালে হোয়াইট হাউসের বাইরে গোলাগুলি

ঢাকা অফিস ॥ যুক্তরাষ্ট্রের হোয়াইট হাউসের সামনে গোলাগুলির ঘটনা ঘটেছে। তবে সন্দেহভাজন ব্যক্তিকে গুলি করেছে নিরাপত্তা বাহিনীর সদস্যরা। মার্কিন প্রেসিডেন্ট ডোনাল্ড ট্রাম্পের সংবাদ সম্মেলন চলাকালে এই ঘটনা ঘটেছে। তবে তাকে নিরাপদেই সরিয়ে নেওয়া হয়েছে। খবর বিবিসি, সিএনএন। প্রেসিডেন্ট ডোনাল্ড ট্রাম্প জানিয়েছেন, হোয়াইট হাউসের কাছে কেউ গুলি চালিয়েছে। গোলাগুলির পরই সিক্রেট সার্ভিসের কর্মকর্তারা সেখান থেকে ট্রাম্পকে সরিয়ে নিয়ে যান। স্থানীয় সোমবার ওই গোলাগুলির ঘটনা ঘটে। ওই ঘটনা সম্পর্কে সাংবাদিকদের সঙ্গে আলাপকালে ট্রাম্প বলেন, পরিস্থিতি ভালোভাবেই নিয়ন্ত্রণ করা সম্ভব হয়েছে। সংবাদ সম্মেলনের সময় হঠাৎ করেই সিক্রেট সার্ভিসের এক কর্মকর্তা স্টেজে উঠে আসেন। সে সময় ট্রাম্পের কানে কানে তাকে কিছু বলতে দেখা যায়। এরপরই সেখান থেকে ট্রাম্পকে দ্রুত সরিয়ে নিয়ে যাওয়া হয় এবং ব্রিফিং রুম বন্ধ করে দেওয়া হয়। ট্রাম্পকে যখন কিছু বলা হচ্ছিল তখন তাকে বলতে শোনা গেছে, ‘ওহ, কি হচ্ছে?’ এর নয় মিনিট পরেই প্রেসিডেন্ট ট্রাম্প আবারও ফিরে আসেন। তিনি সাংবাদিকদের উদ্দেশে বলেন, সিক্রেট সার্ভিসের সদস্যরা একজন সন্দেহভাজনকে গুলি করেছে বলে বিশ্বাস তার। তিনি জানিয়েছেন, এই ঘটনার পর একজনকে হাসপাতালে নিয়ে যাওয়া হয়েছে। ট্রাম্প জানেন এমন ঘটনা সাধারণত ঘটে না। কিন্তু এমন পরিস্থিতিতে সিক্রেট সার্ভিসের লোকজন যেভাবে দ্রুত পদক্ষেপ নিয়েছেন সেজন্য তাদের প্রশংসা করেছেন তিনি।

দৌলতপুর স্বাস্থ্যকমপ্লেক্সের এক্স-রে, ইসিজি ও সনো’র উদ্বোধন করলেন এমপি বাদশা

দৌলতপুর প্রতিনিধি ॥ দীর্ঘদিনের অচলাবস্থা শেষে কুষ্টিয়ার দৌলতপুর উপজেলা স্বাস্থ্যকমপ্লেক্সের এক্স-রে, ইসিজি ও আলট্রা সনো মেশিনের উদ্বোধন করেছেন কুষ্টিয়া-১ দৌলতপুর আসনের সংসদ সদস্য এ্যাড. আ. কা. ম. সরওয়ার জাহান বাদশা। গতকাল মঙ্গলবার দুপুরে এসব জরুরী চিকিৎসা সহায়তা সামগ্রীর উদ্বোধন করা হয়। এসময় উপস্থিত ছিলেন দৌলতপুর সহকারী কমিশনার (ভূমি) মো. আজগর আলী, দৌলতপুর উপজেলা স্বাস্থ্য ও পরিবার পরিকল্পনা কর্মকর্তা ডা. তৌহিদুল ইসলাম তুহিন, আবাসিক মেডিকেল অফিসার ডা. সামসুল আরেফিন ও ডা. আবু সাঈদসহ স্থানীয় সুধীজন। প্রায় একযুগ ধরে দৌলতপুর উপজেলা স্বাস্থ্যকমপ্লেক্সের এক্স-রে, ইসিজি ও আলট্রা সনো মেশিন নষ্ট হয়ে পড়েছিল। এরআগে যারা দায়িত্বে ছিলেন তারা উপজেলা স্বাস্থ্যকমপ্লেক্স সংলগ্ন গড়ে ওঠা সব অবৈধ ক্লিনিক ও ডায়াগনষ্টিক সেন্টারের মালিক এবং স্থানীয় দালালচক্রের দৌরাত্মে এসব জরুরী চিকিৎসা সামগ্রী ইচ্ছাকৃতভাবে নষ্ট করে রাখতেন। প্রয়াত এক্স-রে অপারেটর হাবিবুর রহমান দৌলতপুর উপজেলা স্বাস্থ্যকমপ্লেক্সে চাকুরী করলেও তিনি কোনদিন এক্স-রে মেশিন সচল রাখেননি। তিনি ইচ্ছাকৃতভাবে সচল মেশিন অচল করে রাখতেন যা সবারই জানা রয়েছে।

 

কুষ্টিয়ায় র‌্যাবের অভিযানে গাঁজা সহ ২ আসামী গ্রেফতার

নিজ সংবাদ ॥ র‌্যাব-১২, সিপিসি-১, কুষ্টিয়া ক্যাম্পের একটি চৌকষ আভিযানিক দল গতকাল ১১ আগষ্ট  বিকেল পৌনে ৭ সময় ‘‘কুষ্টিয়ার মিরপুর উপজেলার গোড়দহ গ্রামস্থ খোনকার মোড়, ওমর আলী শেখ এর চায়ের দোকানের সামনে পাঁকা রাস্তা উপর’’ একটি মাদক অভিযান পরিচালনা করে। উক্ত অভিযানে গাঁজা ১ কেজি সহ ২ আসামী মোঃ জিয়ারুল (৩৭), পিত-জান মোহাম্মদ,  ও মোঃ রাকিবুল ইসলাম (২৫), পিতা-আঃ রহিম, উভয় সাং- গোড়দহ, থানা-মিরপুর, জেলা-কুষ্টিয়াদ্বয়’কে গ্রেফতার করা হয়। পরবর্তীতে উদ্ধারকৃত আলামতসহ ধৃত আসামীদ্বয়ের বিরুদ্ধে কুষ্টিয়া জেলার মিরপুর থানায় একটি মাদক মামলা দায়ের করা হয়েছে এবং গ্রেফতারকৃত আসামীদ্বয়কেমিরপুর থানায় সোপর্দ করা হয়েছে।

সাংবাদিকদের নামে মিথ্যা মামলার প্রতিবাদে দৌলতপুরে মানববন্ধন

দৌলতপুর প্রতিনিধি ॥ সাংবাদিকদের নামে মিথ্যা ও উদ্দেশ্য প্রণোদিত মামলার প্রতিবাদে কুষ্টিয়ার দৌলতপুরে সর্বস্তরের সাংবাদিকদের ব্যানারে মানববন্ধন অনুষ্ঠিত হয়েছে। গতকাল মঙ্গলবার বেলা সাড়ে ১১টায় দৌলতপুর উপজেলা পরিষদ বাজারের প্রধান সড়কে এ মানববন্ধন অনুষ্ঠিত হয়। প্রবীণ সাংবাদিক আব্দুল আলীম সাচ্চুর সভাপতিত্বে মানববন্ধন চলাকালে বক্তব্য রাখেন, সাংবাদিক শরীফুল ইসলাম, তাশরিক সঞ্চয়, এস আর সেলিম, রনি আহমেদ, ফিরোজ কায়সার, শিপন আহমেদ, হেলাল উদ্দিন, আসানুল হক ও জিল্লুর রহমান প্রমুখ। এসময় সাংবাদিকবৃন্দ অবিলম্বে মামলা প্রত্যাহারের দাবি জানান। তা’নাহলে পরবর্তীতে কঠোর কর্মসূচী দেওয়া হবে বলে বক্তব্যে উল্লেখ করা হয়। উল্লেখ্য, কুষ্টিয়ার দৌলতপুর উপজেলার পিএম কলেজ পরিচালনা কমিটির সভাপতি এ্যাড. শরীফ উদ্দিন রিমনের বিরুদ্ধে পিএম কলেজের অধ্যক্ষ আব্দুল মান্নানসহ কলেজের সকল শিক্ষক-কর্মচারীবৃন্দ সংশ্লিষ্ট বিভিন্ন দপ্তরে অভিযোগ দেন। প্রাপ্ত অভিযোগের ভিত্তিতে দৌলতপুর নিউজ টোয়েন্টিফোর নামে একটি অনলাইন পোর্টালসহ বিভিন্ন গণমাধ্যম সংবাদ পরিবেশন করে। প্রচারিত ও প্রকাশিত সংবাদের ভিত্তিতে ওয়ালিউল আলম শাওন বাদী হয়ে দৌলতপুর নিউজ টোয়েন্টিফোরের প্রধান নির্বাহী তাশরিক সঞ্চয়সহ ৩জনের নামে সোমবার কুষ্টিয়া সিনিয়র জুডিশিয়াল ম্যাজিষ্ট্রেট আদালতে আইসিটি আইনে মামলা করেন। এরই প্রেক্ষিতে দৌলতপুরের সর্বস্তরের সাংবাদিক প্রতিবাদ জানিয়ে মানববন্ধন করেন।

স্বাস্থ্যবিধি না মানায় মোবাইল কোর্টে জরিমানা করলেন কুষ্টিয়া সদর ইউএনও

রেজা আহাম্মেদ জয় ॥ মানুষকে অন্তত সচেতন থাকতে হবে। অসচেতন ব্যক্তিদের সচেতন করতে মন্ত্রী পরিষদের এক বৈঠকে প্রধানমন্ত্রী মাস্ক ব্যবহার নিশ্চিত করার জন্য মোবাইল কোর্ট করার নির্দেশনা দিয়েছেন সে নির্দেশনা মোতাবেক কুষ্টিয়া সদর উপজেলা নির্বাহী অফিসার জুবায়ের হোসেন চৌধুরী এই অভিযান পরিচালনা করেন। গতকাল মঙ্গলবার ১১আগস্ট শহরের বিভিন্ন পয়েন্টে প্রায় ৫০ জনকে বিভিন্ন অংকে জরিমানা করা হয়। সদর ইউএনও এর  নেতৃত্বে এসময় সদর এসিল্যান্ড নাহিদ হাসান ও নির্বাহী ম্যাজিস্ট্রেট খাদিজা খাতুনও একইসাথে অভিযান পরিচালনা করেন। দেখা গেছে, অনেক মানুষের মধ্যে সচেতনতাটা একটু কমে গেছে, কিন্তু সেটা আরও বাড়াতে মানুষের মাঝে সচেতনতা সৃষ্টির লক্ষ্যে মাস্ক পড়া বাধ্যতামূলক প্রচারে মাঠে নামেন প্রশাসন।

সাংবাদিকদের এক প্রশ্নের জবাবে ইউএনও জুবায়ের হোসেন  চৌধুরী বলেন, কোভিড-১৯ সংক্রমনের শুরু থেকে আজ পর্যন্ত জনগণের মাঝে সচেতনতা সৃষ্টিতে মাইকিং, লিফলেট বিতরণসহ বিভিন্নভাবে কাজ করে চলেছে মাঠ প্রশাসন। জরিমানার বিষয়ে বলেন, এটা সরকারের পক্ষ থেকে নির্দেশনা রয়েছে যে, কিছু মানুষের মাস্ক পকেটে থাকে অথচ তারা ব্যবহার করছে না, স্বাস্থ্য বিধি না মানায় কিছু মানুষকে জরিমানা করলে অবশ্য অন্য আরেকজন বিষয়টি দেখে ভয় পেয়ে স্বাস্থ্যবিধি মেনে চলবে বলে মনে করেন। এছাড়াও যাদের মাস্ক নাই বা কেনার সামর্থ নেই তাদের মাঝে মাস্ক বিতরণ করা হয়। পরিশেষে তিনি বলেন, স্বাস্থ্য বিধি মানা সহ প্রতিটি মানুষকে মাস্ক পড়া অভ্যাসে পরিণত করতে এই অভিযান অব্যাহত থাকবে।

বিভ্রান্তি দূর করলেন সিফাত-শিপ্রা

ঢাকা অফিস ॥ অবসরপ্রাপ্ত মেজর সিনহা হত্যা মামলার প্রত্যক্ষদর্শী সাহেদুল ইসলাম সিফাত ও তাদের আরেক সঙ্গী শিপ্রা রাণী দেবনাথকে নিয়ে ‘বিভ্রান্তি’ অবসানে সংবাদ সম্মেলন করেছেন তারা। গত সোমবার রাতে হঠাৎ একটি আবাসিক হোটেলে গণমাধ্যমকর্মীদের ডেকে কথা বলেন এ দুই শিক্ষার্থী। সংবাদ সম্মেলনে সিফাত বলেন, মেজর সিনহা হত্যার সুষ্ঠু বিচার প্রত্যাশা করছে সারাদেশ। কারাগার থেকে বেরিয়ে সেই বিষয়টি অনুধাবন করলাম। তবে কিছু বিভ্রান্তি ছড়ানো হচ্ছে। এতদিন জেলে ছিলাম তাই কিছুই জানতে পারিনি। এখন জেল থেকে বের হয়ে দেখছি প্রায় সব মিডিয়া আমাদের জন্য লিখেছে। আমরা কৃতজ্ঞ। সব সত্যি আমরা তুলে ধরব। সিফাত বলেন, কক্সবাজার জেলা কারাগার থেকে বের হওয়ার পর একটি নম্বরবিহীন গাড়িতে করে আমাকে নিয়ে যাওয়া হয়েছে বলে যে গুঞ্জন গণমাধ্যমে ছড়িয়েছে সেটি ঠিক নয়। ওই গাড়িটি আমাদের পারিবারিক গাড়ি ছিল। তার বিরুদ্ধে করা মামলায় ন্যায়বিচার পাবেন বলেও প্রত্যাশা করেন তিনি। সুস্থ ও নিরাপদে আছেন বলে জানিয়েছেন জামিনে মুক্তি পাওয়া সাহেদুল ইসলাস সিফাত ও শিপ্রা দেবনাথ। শিপ্রা বলেন, প্লিজ, প্রে ফর আস। সিফাত ও আমি আপনাদের প্রতি অনেক কৃতজ্ঞ। আপনারা আমাদের পাশে ছিলেন, পাশে থাকবেন। আপাতত এতটুকুই বলার আছে। আমরা প্রত্যেকটা কথা বলব। সিফাত সাংবাদিকদের বলেন, অনেক গণমাধ্যমে আমার পায়ে গুলি লেগেছে বলে সংবাদ প্রকাশ করা হয়েছে। এটা সঠিক নয়। মানসিকভাবে ও শারীরিকভাবে আমি সম্পূর্ণ সুস্থ আছি। আমার পায়ে গুলি লাগেনি। আশা করি সুষ্ঠু তদন্ত হবে। আমরা রাষ্ট্রের কাছে কৃতজ্ঞ। শিপ্রা ও সিফাত তাদের পরিবারের সদস্যদের সঙ্গে রয়েছেন। গত সোমবার দুপুরে সিফাত এবং রোববার শিপ্রা কক্সবাজার জেলা কারাগার থেকে মুক্তি পেয়েছেন। গত ৩১ জুলাই রাতে সিনহা নিহতের ঘটনার পর পুলিশের করা মামলায় গ্রেফতার হয়ে কক্সবাজার কারাগারে ছিলেন বেসরকারি স্ট্যামফোর্ড ইউনিভার্সিটির শিক্ষার্থী সাহেদুল ইসলাম সিফাত ও শিপ্রা দেবনাথ। নিহত সিনহা মোহাম্মদ রাশেদ খানের সঙ্গে কক্সবাজারে প্রামাণ্যচিত্র তৈরির কাজ করছিলেন স্ট্যামফোর্ড ইউনিভার্সিটির তিন শিক্ষার্থী শিপ্রা দেবনাথ, সাহেদুল ইসলাম সিফাত ও তাহসিন রিফাত নূর। পুলিশ সাহেদুল ইসলাম সিফাতের বিরুদ্ধে টেকনাফ থানায় মাদক দ্রব্য ও হত্যা মামলা এবং কক্সবাজারের রামু থানায় শিপ্রার বিরুদ্ধে মাদক দ্রব্য আইনে মামলা করে। এ ছাড়া তাহসিন রিফাত নূরকে অভিভাবকের কাছে হস্তান্তর করে পুলিশ। প্রসঙ্গত, গত ৩১ জুলাই ঈদুল আজহার আগের রাতে কক্সবাজারের মেরিন ড্রাইভ রোডে টেকনাফের বাহারছড়া চেকপোস্টে তল্লাশির সময় পুলিশের গুলিতে নিহত হন সেনাবাহিনীর অবসরপ্রাপ্ত মেজর সিনহা মোহাম্মদ রাশেদ খান। ৫ আগস্ট নিহত সিনহার বোন শারমিন শাহরিয়া ফেরদৌস বাদী হয়ে কক্সবাজার সিনিয়র জুডিশিয়াল ম্যাজিস্ট্রেট আদালতে পরিদর্শক লিয়াকত আলী, ওসি প্রদীপ কুমার দাশসহ নয়জনের বিরুদ্ধে হত্যা মামলা করেন। ৬ আগস্ট বরখাস্ত হওয়া ওসি প্রদীপসহ সাত আসামি কক্সবাজার সিনিয়র জুডিশিয়াল আদালতে আত্মসমর্পণ করেন। মামলার শুনানিতে র‌্যাবের পক্ষ থেকে প্রত্যেক আসামির ১০ দিন করে রিমান্ডের আবেদন করলে আদালত লিয়াকত, প্রদীপ ও নন্দ দুলাল রক্ষিতের সাত দিন করে রিমান্ড মঞ্জুর করেন। বাকি চারজনকে দুই দিন কারাফটকে জিজ্ঞাসাবাদের আদেশ দেন। অন্য দুই আসামির বিরুদ্ধে গ্রেফতারি পরোয়ানা জারি করেন আদালত। চারজনকে জেল গেটে জিজ্ঞাসাবাদ শেষে আবারও ১০ দিনের রিমান্ড চেয়েছে তদন্ত সংস্থা।

গণপরিবহনে বর্ধিত ভাড়া প্রত্যাহারের দাবি

ঢাকা অফিস ॥ মহামারি করোনাভাইরাস (কোভিড-১৯) পরিস্থিতিতে বাসের ৬০ শতাংশ বর্ধিত ভাড়া প্রত্যাহারের দাবি জানিয়েছে বাংলাদেশ যাত্রী কল্যাণ সমিতি। গতকাল মঙ্গলবার গণমাধ্যমে পাঠানো এক বিবৃতিতে সংগঠনের মহাসচিব মো. মোজাম্মেল হক চৌধুরী এ দাবি জানান। বিবৃতিতে তিনি দাবি করেন, এখন দেশের কোনো গণপরিবহনে স্বাস্থ্যবিধি মানা হচ্ছে না। যেসব শর্ত অনুসরণ করে বর্ধিত ভাড়া আদায়ের কথা বলা হয়েছিল তার কোনোটাই মানা হচ্ছে না। সেই পুরনো কায়দায় গাদাগাদি করে যাত্রী বহন করা হচ্ছে। যাত্রী কল্যাণ সমিতি বলছে, করোনাকালীন ক্ষতি পুষিয়ে নিতে সরকারের বর্ধিত ৬০ শতাংশ ভাড়ার চেয়েও অধিকাংশ রুটে বেশি ভাড়া আদায় করা হচ্ছে। এতে করোনা সংকটে কর্মহীন ও আয় কমে যাওয়া দেশের সাধারণ মানুষের যাতায়াত দুর্বিষহ হয়ে উঠেছে। সরকার যাত্রীপ্রতিনিধি বাদ দিয়ে মালিকদের পাতানো ফাঁদে পা দিয়ে করোনার এই মহাসংকটে থাকা দেশের অসহায় জনগণের ওপর একচেটিয়াভাবে বাসের ভাড়া ৬০ শতাংশ বর্ধিত করে অযৌক্তিকভাবে চাপিয়ে দেয়া হয়েছে। ফলে দেশব্যাপী চলাচলরত বাস-মিনিবাসের সঙ্গে লেগুনা, হিউম্যান হলার, টেম্পু, অটোরিকশা, প্যাডেলচালিত রিকশা, ইজিবাইক, নসিমন-করিমন, টেক্সিক্যাবসহ সকল প্রকার যানবাহনের ভাড়া প্রায় দ্বিগুণ হয়ে যায়। মোজাম্মেল হক চৌধুরী বলেন, এতে যাত্রীস্বার্থ চরমভাবে উপেক্ষিত হয়। ভাড়া নৈরাজ্য ও যাত্রী হয়রানিকে আরেক দফা উসকে দেয়া হয়। ওই সময়ে যাত্রী কল্যাণ সমিতির পক্ষ থেকে এই ভাড়া বৃদ্ধির তীব্র বিরোধিতা করা হলেও তা আমলে নেয়া হয়নি। অনতিবিলম্বে স্বাস্থ্যবিধির নামে গণপরিবহণের বর্ধিত ভাড়া প্রত্যাহার করে দেশের প্রতি রুটে বর্ধিত ভাড়া পূর্বের অবস্থায় ফিরিয়ে আনার জন্য প্রয়োজনীয় পদক্ষেপ নেয়ার দাবি জানিয়েছে বাংলাদেশ যাত্রী কল্যাণ সমিতি।

ওসি প্রদীপকে পরামর্শ দেয়ায় ‘অনুতপ্ত’ সাবেক এসপি আল্লাহ বকশ

ঢাকা অফিস ॥ ‘মেজর (অবসরপ্রাপ্ত) সিনহা হত্যাকান্ডের পর মামলা সাজাতে টেলিফোনে ওসি প্রদীপকে আইনি পরামর্শ দেয়া খুব খারাপ কাজ হয়েছে’ বলে মনে করছেন সাবেক এসপি আল্লাহ বকশের পরিবার ও স্বজন। একই সঙ্গে নিজের কৃতকর্মের জন্য অনুতপ্ত হয়ে দুঃখও প্রকাশ করেছেন আল্লাহ বকশ। গতকাল মঙ্গলবার অবসরপ্রাপ্ত পুলিশ কর্মকর্তা কল্যাণ সমিতি, চট্টগ্রাম শাখার প্যাডে গণমাধ্যমে পাঠানো এক প্রেস বিজ্ঞপ্তিতে তিনি এমন মন্তব্য করেন। প্রেস বিজ্ঞপ্তিতে বলা হয়, গত ১ আগস্ট টেকনাফ থানার সাবেক ওসি প্রদীপের সঙ্গে ফোনালাপের বিষয়টি প্রকাশ হওয়ার পর মিডিয়া ও সামাজিকযোগাযোগ মাধ্যমে প্রতিক্রিয়া দেখা দিয়েছে। আত্মীয়-স্বজন, বন্ধু-বান্ধবও এ নিয়ে প্রতিক্রিয়া দেখাচ্ছেন। অনেকে আমি খুব খারাপ কাজ করেছি বলে ধারণা করছেন। প্রেস বিজ্ঞপ্তিতে তিনি আরও বলেন, অবসরপ্রাপ্ত পুলিশ অফিসারদের সঙ্গে কর্মরত পুলিশ অফিসাররা বিভিন্ন সময় পরামর্শ চেয়ে থাকেন। ওইদিনও ওসি প্রদীপ তার মতো করে ঘটনার বর্ণনা দিয়ে আইনি পরামর্শ চেয়েছিলেন। ওসি প্রদীপ আসল ঘটনা গোপন করেছিলেন বলে উল্লেখ করে আল্লাহ বকশ বলেন, ওইদিন ওসি প্রদীপ টেলিফোনে যা বলেছেন, তার পরিপ্রেক্ষিতেই পরামর্শ দেয়া হয়েছিল। মূলত, প্রকৃত ঘটনা আড়াল করা হয়েছিল। এছাড়া আইনি পরামর্শ দেয়ার সময় সেনাবাহিনীর প্রসঙ্গে তার ‘অবজ্ঞাসূচক’ মন্তব্য প্রসঙ্গে তিনি বলেন, আমার বাচনভঙ্গি বিকৃত হয়, যা আমার অনিচ্ছাকৃত স্লিপ অব টাং। এতে আমি অনুতপ্ত, মর্মাহত। আমার মাধ্যমে তাদের অবজ্ঞা করার প্রশ্নই আসে না। আমি এজন্য আন্তরিকভাবে দুঃখ প্রকাশ করছি, বলেন সাবেক এ পুলিশ কর্মকর্তা। প্রসঙ্গত, আল্লাহ বকশ চৌধুরী পুলিশ সুপার পদ থেকে ছয় বছর আগে অবসরে যান। বর্তমানে তিনি অবসরপ্রাপ্ত পুলিশ কর্মকর্তা কল্যাণ সমিতি, চট্টগ্রাম শাখার সভাপতির দায়িত্ব পালন করছেন। তার গ্রামের বাড়ি চট্টগ্রামের রাঙ্গুনিয়া উপজেলা লালানগর ইউনিয়নে। তার ছোট ভাই খোদা বকশ বিএনপি সরকারের সময় পুলিশের আইজিপি ছিলেন। ২১ আগস্ট গ্রেনেড হামলা মামলায় দীর্ঘদিন কারাভোগ করে বর্তমানে জামিনে আছেন বলে জানা গেছে। গত ৩১ জুলাই রাতে টেকনাফ বাহারছড়া চেকপোস্টে তল্লাশির সময় পুলিশের গুলিতে নিহত হন সেনাবাহিনীর অবসরপ্রাপ্ত মেজর সিনহা মোহাম্মদ রাশেদ খান। এরপর ৩ আগস্ট স্বরাষ্ট্র মন্ত্রণালয়ের জননিরাপত্তা বিভাগ ঘটনার তদন্তে চট্টগ্রামের অতিরিক্ত বিভাগীয় কমিশনার (উন্নয়ন) মোহাম্মদ মিজানুর রহমানকে প্রধান করে চার সদস্যবিশিষ্ট তদন্ত দল গঠন করে। ৫ আগস্ট নিহত সিনহার বোন শারমিন শাহরিয়া ফেরদৌস বাদী হয়ে কক্সবাজারের টেকনাফ বিচারিক হাকিমের আদালতে পুলিশের বরখাস্ত পরিদর্শক লিয়াকত আলী ও বরখাস্ত ওসি প্রদীপ কুমার দাশসহ নয়জনকে আসামি করে হত্যা মামলা করেন। ওইদিন রাতেই টেকনাফ থানায় মামলাটি নথিভুক্ত হয়। ৬ আগস্ট বরখাস্ত পরিদর্শক লিয়াকত ও ওসি প্রদীপসহ মামলার সাত আসামি আদালতে আত্মসমর্পণ করেন। এতে র‌্যাব আদালতে প্রত্যেক আসামির বিরুদ্ধে ১০ দিন করে রিমান্ডের আবেদন করলে বিচারক লিয়াকত, প্রদীপ ও দুলালকে সাতদিন করে রিমান্ড মঞ্জুর এবং চারজন আসামিকে দুদিন করে কারা ফটকে জিজ্ঞাসাবাদের নির্দেশ দেন। এ ছাড়া অনুপস্থিত থাকা মামলার অপর দুই আসামিকে পলাতক দেখিয়ে গ্রেফতারি পরোয়ানা জারি করেন আদালত। তবে জেলা পুলিশের ভাষ্য, পলাতক এএসআই টুটুল ও কনস্টেবল মোস্তফা নামের কোনো পুলিশ সদস্য বাহারছড়া তদন্ত কেন্দ্র ও টেকনাফ থানায় কর্মরত ছিল না।

সারা বিশ্বের সাথে বাংলাদেশও করোনার ভ্যাকসিন পাবে – স্বাস্থ্য মহাপরিচালক

ঢাকা অফিস ॥ স্বাস্থ্য অধিদপ্তরের নব-নিযুক্ত মহাপরিচালক ডা. আবুল বাসার মোহাম্মদ খুরশীদ আলম বলেছেন, সারা বিশ্বের সাথে বাংলাদেশও করোনা ভ্যাকসিন পাবে। ভ্যাকসিন উৎপাদনকারী প্রতিষ্ঠান গ্যাভীর সাথে প্রধানমন্ত্রীর চুক্তি হয়েছে, কথা হয়েছে। গ্যাভী সারা বিশ্বে ভ্যাকসিন সরবরাহ করবে। বাংলাদেশ কিভাবে আগে ভ্যাকসিন পাবে সে সম্পর্কে প্রধানমন্ত্রী স্বাস্থ্য অধিদপ্তরকে দিক নির্দেশনা দিয়েছে। আমরা তাদের সাথে সার্বক্ষণিক যোগাযোগ রাখছি। ভ্যাকসিন আসলে সবার আগে ফ্রন্টলাইনার্সদের দেয়া হবে। পরে গুরুত্ব অনুযায়ী অন্যান্যের দেয়া হবে। গতকাল মঙ্গলবার দুপুরে তিনি জাতির পিতা বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের সমাধি সৌধের বেদীতে শ্রদ্ধা নিবেদন শেষে সাংবাদিকদের প্রশ্নের জবাবে এসব কথা বলেন। তিনি বলেন, দেশে করোনা টেস্টের জন্য পর্যাপ্ত কিট মজুত আছে। কিটের কোন সংকট নেই। আর করোনা পরীক্ষা করার জন্য সারাদেশে ৮০টি পিসিআর স্থাপন করা হয়েছে। প্রয়োজন হলে আরও পিসিআর ল্যাব স্থাপন করা হবে। তিনি আরো জানান, আশঙ্কা আছে শীতে করোনার প্রকোপ আরো বাড়তে পারে। সেজন্য পরিকল্পনা তৈরি করা হবে। যাতে আমাদের দেশে এটা ব্যাপক আকার ধারণ করতে না পারে। করোনায় সারা দেশে বিপুল সংখ্যক চিকিৎসক ও স্বাস্থ্যকর্মী আক্রান্ত হলেও স্বাস্থ্যসেবা ভেঙে পড়ার কোন আশঙ্কা নেই বলেও তিনি জানান। এর আগে তিনি জাতির পিতার সমাধি সৌধের বেদীতে পুষ্পস্তবক অর্পণ করে শ্রদ্ধা জানান। পরে ফাতেহাপাঠ ও বিশেষ মোনাজাত করে বঙ্গবন্ধু এবং ৭৫-এর ১৫ আগস্ট নিহতদের আত্মার মাগফেরাত কামনা করে দোয়া ও বিশেষ মোনাজাত করেন। পরে তিনি বঙ্গবন্ধু ভবনে রক্ষিত পরিদর্শন বইতে মন্তব্য লিখে স্বাক্ষর করেন। এরপর তিনি টুঙ্গিপাড়া উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্স ও নব নির্মিত শেখ সায়েরা খাতুন মেডিকেল কলেজ পরিদর্শন করেন। এসময় শেখ সায়েরা খাতুন মেডিকেল কলেজের অধ্যাপক অধ্যাপক ডা. লিয়াকত হোসেন, সিভিল সার্জন ডা. নিয়াজ মোহাম্মদ, গোপালগঞ্জ ২৫০ শয্যাবিশিষ্ট জেনারেল হাসপাতালের সহকারি পরিচালক ডা. অসিত কুমার মল্লিকসহ চিকিৎসকগণ উপস্থিত ছিলেন।