কুষ্টিয়ার মালিহাদে সরকারী গাছ খেলো কর্মচারী!

আমলা অফিস ॥ কুষ্টিয়ার মিরপুর উপজেলার মালিহাদ ইউনিয়নের জিকে  সেচ প্রকল্পের বেশ কিছু সরকারী মুল্যবান গাছ টেন্ডার ছাড়ায় বিক্রির অভিযোগ উঠেছে এক সরকারী কর্মচারীর বিরুদ্ধে। পানি উন্নয়ন বোর্ডে চাকরীর সুবাধে তিনি সরকারী গাছ বিক্রি করে ক্যানেলের দু’ধার পুরো ফাঁকা করে দিয়েছে। সম্প্রতি জিকে সেচ প্রকল্পের ধারে থাকা ৫টি আকাশমনি, বেশ কিছু শিশুসহ মুল্যবান গাছ বিক্রি করে এলাকায় বেশ সমালোচনার ঝড় উঠেছে। কুষ্টিয়ার মিরপুর উপজেলার মালিহাদ ইউনিয়নের গোপীনাথপুর এলাকার রেজাউল হক। পেশায় একজন সরকারী কর্মচারী। তিনি বর্তমানে বাংলাদেশ পানি উন্নয়ন বোর্ড এর চুয়াডাঙ্গা জেলা শাখার এমএলএসএস পদে কর্মরত রয়েছেন। পানি উন্নয়ন বোর্ডে চাকুরীর সুবাধে তিনি নিজ এলাকার জিকে সেচ প্রকল্পের জমি, সরকারী গাছ রয়েছে একমাত্র তার দখলেই। এলাকাবাসীর অভিযোগ রয়েছে, সরকারী টেন্ডার ছাড়ায় গাছ বিক্রি করেছেন রেজাউল হক। সরেজমিনে গিয়ে এ অভিযোগের সত্যতাও পাওয়া যায়। জিকে সেচ প্রকল্পের মালিহাদস্থ আর২জি সুইচ গেট এলাকায় বেশ কিছু কাটা গাছের গুড়ি পড়ে আছে। এ ব্যাপারে গাছ ক্রেতা শাহাদত আলী জানান, “রেজাউল হক গাছ বিক্রির করার কথা বলে। সে লোক দিয়ে কেটে এনেছিলো। আমি ২০টি গাছ ৩৭ হাজার টাকায় কিনেছি। এর মধ্যে ভেটুল আর কদম গাছ ছিলো।” মজনু নামের আরেক ক্রেতা জানান, “যারা গাছ লাগিয়েছিলো সেই সমিতিই গাছ কেটেছিলো। কার গাছ আমি সেটা বলতে পারবো না। আমি রেজাউলের কাছ থেকে ৫টি আকাশমনি গাছ কিনেছি।” জানা যায়, জিকে সেচ প্রকেল্পর আর২জি গেট সংলগ্ন ৫টি আকাশমনি গাছসহ বেশ কিছু গাছের টেন্ডার হয় ৫টি সমিতির মাধ্যমে। তবে সমিতির গাছ ছাড়াও অতিরিক্ত গাছ বিক্রি করেছে রেজাউল এমনটি দাবী করে স্থানীয়রা।

জিকে সিটিজি সমিতির কোষাধ্যক্ষ মুরাদ আলী জানান, আমরা কৃষকদের যখন পানি দরকার তখন আমাদের পানি দেয় না রেজাউল। সে পানি চালু ও বন্ধ করা নিয়ন্ত্রন করে থাকে। এছাড়া পানি আটকে রেখে জেলেদের দিয়ে মাছ ধরায় সে। মুরাদ আলী অভিযোগ করেন, সরকারী কাছ কাটা, কৃষকদের পানি না দেওয়া ছাড়াও অসংখ্য অভিযোগ রয়েছে তার বিরুদ্ধে। এ ব্যপারে জানতে চাইলে রেজাউল হক জানান, “সমিতির মাধ্যমে টেন্ডারে কাছ কাটা হয়েছে। এতে আমার কোন হাত নেই। আর সরকারী টাকা কোষাগারে জমা হয়েছে। আর কৃষকদের পানি দেওয়া না দেওয়া এটা আমার হাতে না। আমি এই অফিসের কর্মচারী মাত্র। আমার বিরুদ্ধে মিথ্যা অভিযোগ করা হয়েছে।” চুয়াডাঙ্গা পানি উন্নয়ন বোর্ডের নির্বাহী প্রকৌশলী জাহেদুল ইসলাম জানান, সমিতির মাধ্যমে টেন্ডার করে আকাশমনি গাছ বিক্রি করেছে। এটা ঐ সমিতির ব্যাপার তারা কিভাবে গাছ বিক্রি করবে। আমাদের সরকারী টাকা ট্রেজারীর মাধ্যমে তারা পরিশোধ করেছে। তিনি আরো জানান, যদি কেউ পানি উন্নয়ন বোর্ডের অতিরিক্ত সরকারী গাছ কর্তন করে আত্মসাত করে তাহলে তার বিরুদ্ধে কঠো ব্যবস্থা গ্রহণ করা হবে।  কুষ্টিয়া পানি উন্নয়ন বোর্ডের নির্বাহী প্রকৌশলী পীযুষ কৃষ্ণ কুন্ডু জানান, বিষয়টি দেখা হচ্ছে। যদি সত্যতা পাওয়া যায় তাহলে ব্যবস্থা গ্রহণ করা হবে।

 

দৌলতপুরে ভ্যান-রিক্সা চালকদের মাঝে ত্রাণ বিতরণ

দৌলতপুর প্রতিনিধি ॥ কুষ্টিয়ার দৌলতপুরে ভ্যান-রিক্সা চালকদের মাঝে ত্রাণ বিরতণ করেছে দৌলতপুর উপজেলা পরিষদ। গতকাল রবিবার দুপুর ২টায় উপজেলা পরিষদ চত্বরে কর্মহীন ৩০জন ভ্যান-রিক্সা চালকদের মাঝে ত্রাণ সামগ্রী বিতরণ করেন উপজেলা চেয়ারম্যান এ্যাড. এজাজ আহমেদ মামুনের পক্ষে ছাত্রলীগ নেতা আব্দুর রশীদ, কোরবান আলী ও সেলিম রেজা।

সত্য বললে গ্রেফতার করা হচ্ছে – রিজভী

ঢাকা অফিস ॥ মানুষ বাঁচলো না কি মরলো সেদিকে সরকারের লক্ষ্য নেই মন্তব্য করে বিএনপির সিনিয়র যুগ্ম-মহাসচিব রুহুল কবির রিজভী বলেছেন, করোনা ভাইরাস প্রতিরোধে ক্ষমতাসীন সরকার আগে থেকেই প্রস্তুতি নিয়ে রাখলে সংক্রমণ ও মৃত্যুর সংখ্যা এত বেশি হতো না। সরকার অনেক সময় পেলেও সেদিকে মনোযোগ দেয়নি। তারা উৎসব পালনে ব্যস্ত ছিল। আজকে এই দুঃসময়ের মধ্যেও মামলা দিয়ে ছাত্রদল ও যুবদলের নেতাকর্মীদের গ্রেফতার করা হচ্ছে। যারা সত্য কথা বলে ব্লগার, সাংবাদিক তাদেরকে ডিজিটাল নিরাপত্তা আইনে মামলা দিয়ে গ্রেফতার করা হচ্ছে। যারা নিরপেক্ষ ও সত্য কথা বলে তাদের বিরুদ্ধে মামলা দেয়া হচ্ছে। গতকাল রোববার সকালে রাজধানীর বাড্ডা এলাকায় ঢাকা মহানগর উত্তর ছাত্রদলের উদ্যোগে গরিব মানুষের মাঝে বিএনপির ভারপ্রাপ্ত চেয়ারম্যান তারেক রহমানের নির্দেশে উপহার সামগ্রী বিতরণকালে প্রধান অতিথির বক্তব্যে তিনি এসব কথা বলেন। এ সময় স্থানীয় বিএনপি ও অঙ্গসংগঠনের নেতাকর্মীরা উপস্থিত ছিলেন। ত্রাণ বিতরণের আগে সংক্ষিপ্ত বক্তব্যে রুহুল কবির রিজভী বলেন, করোনা আজকে ভয়ংকর পরিস্থিতিতে যখন সংক্রমণের মাত্রা বাংলাদেশে বৃদ্ধি পেয়েছে, গ্রামেগঞ্জে ছড়িয়ে পড়ছে, তখন সরকার লকডাউন তুলে দিয়ে মানুষকে মৃত্যুর মুখে ঠেলে দিয়েছে। সরকারের কাছে অর্থনীতি আগে বড় বড় ব্যবসায়ীদের স্বার্থ আগে। মানুষের জীবন চলে যাচ্ছে এটা বড় কথা নয়। মানুষ মরলো না কি বাঁচলো সেটা সরকারের কাছে বড় কথা নয়। তিনি বলেন, করোনায় আক্রান্ত মানুষের সংখ্যা বাড়ছে। টেস্ট করার কোনো উপায় নাই। পর্যাপ্ত মেডিকেল সহায়তা নেই। এইটা সরকার খেয়াল করছে না। এটার কোনো গুরুত্ব দিচ্ছে না সরকার। যে খাদ্য ছিল তা দিয়ে ২-৩ মাস গরিব মানুষকে চালাতে পারতাম। বাড়িতে বাড়িতে খাদ্য পৌঁছে দিতে পারতাম না? নিশ্চয়ই পারতাম। আইনশৃঙ্খলা বাহিনী, সেনাবাহিনীকে দিয়ে যারা গার্মেন্টসে কাজ করে, দিন আনে দিন খায়, রিকশাচালক তাদের সবাইকে দিতে খাবার দেয়া যেতো। সরকার ওদিকে যায়নি। সরকারের সমালোচনা করে তিনি বলেন, পর্যাপ্ত মেডিকেল ইকুইপমেন্ট না পেয়ে হাসপাতালের ডাক্তার, নার্স মারা যাচ্ছে। যারা প্রতিবাদ করছে তাদের বরখাস্ত বা চাকরিচ্যুত করা হচ্ছে। চিকিৎসা না পেয়ে সরকারের একজন উপসচিব মারা গেছেন। তাহলে কোথায় সেই চিকিৎসা? রিজভী বলেন, বিএনপি নেতাকর্মীদের বলা হয়েছে- সারাদেশের মানুষের পাশে থাকতে। বিএনপির চেয়ারপারসন ও সাবেক প্রধানমন্ত্রী বেগম খালেদা জিয়াকে দুই বছর অন্যায়ভাবে কারাবন্দী করে রাখা হয়েছিল। তিনি আমাদের নির্দেশ দিয়েছেন সারাদেশের মানুষের পাশে দাঁড়াতে। বিএনপির ভারপ্রাপ্ত চেয়ারম্যান তারেক রহমান সারাদেশের প্রতিনিয়ত খোঁজখবর রাখছেন। আমাদের নির্দেশ দিয়েছেন সকল স্তরের নেতাকর্মীরা যেন মানুষের পাশে দাঁড়ায়। বিএনপির নেতা-কর্মীরা খাবেন অন্যরা খাবে না এমন যেন না হয়। আমরা সেটাই চেষ্টা করছি। সরকারি ত্রাণ পাইনি। বরং আমাদের নেতাকর্মীদের নিজেদের টাকায় কেনা ১৩ লক্ষ পরিবারকে সহায়তা করেছি। বিএনপি, ছাত্রদল, যুবদল, স্বেচ্ছাসেবক দল, মহিলা দলসহ সব অঙ্গ সংগঠনের নেতাকর্মীরা সারাদেশে ত্রাণ বিতরণ করছেন।

 

গাংনীতে অসহায় ৭০পরিবারের পাশে দাঁড়ালেন বিজিবি

গাংনী প্রতিনিধি ॥ মেহেরপুরের গাংনী উপজেলার তেঁতুলবাড়িয়া ইউনিয়নের সীমান্তবর্তী এলাকায় ৪৭ ব্যাটেলিয়ান কমান্ডার লেফটেন্যান্ট কর্নেল রফিকুল আলম পিএসসি’র উদ্যোগে করোনা ভাইরাস প্রাদুর্ভাবের কারনে সীমান্তবর্তী এলাকার কর্মহীন  অসহায়  হতদরিদ্র ৭০ টি পরিবারের মাঝে খাদ্য সামগ্রী বিতরণ করা হয়েছে। গতকাল রবিবার সকাল ১১টার সময় তেতুঁলবাড়িয়া সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয় মাঠে সামাজিক দূরত্ব বজায় রেখে বিদ্যানন্দ ফাউন্ডেশনের আর্থিক সহায়তায়  বিজিবি’র কুষ্টিয়া (মিরপুর) সেক্টর কমান্ডের  সহকারী পরিচালক জিয়াউর রহমানের উপস্থিতিতে ঁপরিবার প্রতি ৬ কেজি চাল , ৪ কেজি ময়দা, ২ কেজি ডাল ও আধা কেজি লবন (খাদ্য সামগ্রী) বিতরণ করা হয়। বিতরণ  অনুষ্ঠানে আরো উপস্থিত ছিলেন বিজিবি’র কাজীপুর কোম্পানী কমান্ডার বাদশা মিয়া, তেতুঁলবাড়িয়া বিওপির নায়েক সুবেদার আনজু মিয়া, তেতুঁলবাড়িয়া ইউনিয়নের চেয়ারম্যান জাহাঙ্গীর হোসেন, সাবেক চেয়ারম্যান নাজমুল হুদা বিশ্বাস,গাংনী উপজেলা প্রেস ক্লাবের সভাপতি আমিরুল ইসলাম অল্ডাম, ইউপি সদস্য গোলাম কিবরিয়াসহ বিজিবি’র সদস্য নায়েক সুবেদার আরিফুল ইসলাম, নায়েক শাহিন, ল্যান্স নায়েক আনোয়ার হোসেন, সিপাহী জসিম, মাসুদ প্রমুখ উপস্থিত ছিলেন।

দুর্বলতা ঢাকতে সরকার ডিজিটাল আইন ব্যবহার করছে – ভিপি নুর

ঢাকা অফিস ॥ করোনাভাইরাসের মহামারিতে সরকারের নানা দুর্বলতার তথ্য তুলে ধরায় সাংবাদিক, লেখক, কার্টুনিস্ট ও রাষ্ট্রচিন্তাবিদদের ডিজিটাল আইনে গ্রেফতার করা হচ্ছে বলে মন্তব্য করেছেন ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের কেন্দ্রীয় ছাত্র সংসদের (ডাকসু) ভিপি নুরুল হক নুর। ডিজিটাল নিরাপত্তা আইনের মাধ্যমে মানুষের কথা বলার মৌলিক অধিকার হরণ করা হচ্ছে বলে দাবি করেন তিনি। গতকাল রোববার দুপুরে রাজধানীর প্রেসক্লাবের সামনে ‘রাষ্ট্রচিন্তা ও বন্ধুজনের’ উদ্যোগে ডিজিটাল নিরাপত্তা আইনে আটক সবাইকে মুক্তি ও এ আইন বাতিলের দাবিতে এক মানববন্ধনে তিনি একথা বলেন। মানববন্ধনে ডাকসু ভিপি নুরুল হক নুর বলেন, ডিজিটাল আইন পাস হওয়ার সময় থেকে এদেশের সাংবাদিক ও বুদ্ধিজীবীরা এ আইনের বিরোধিতা করে আসছেন। তারা শঙ্কা প্রকাশ করেছিলেন এই আইনের মাধ্যমে সাংবাদিক ও গণমাধ্যমের স্বাধীনতায় হস্তক্ষেপ করা হবে। তখন রাষ্ট্র বলেছিল, এই আইনে সাংবাদিক ও গণমাধ্যমের স্বাধীনতায় কোনো হস্তক্ষেপ করবে না। কিন্তু করোনার মহামারিতে সরকারের নানা দুর্বলতা গণমাধ্যমে উঠে আসায় এবং এসব দুর্বলতার প্রতিবাদ করায় এদেশের বিশিষ্ট সাংবাদিক, কলামিস্ট, লেখক, কার্টুনিস্ট ও রাষ্ট্রচিন্তাবিদদের ডিজিটাল নিরাপত্তা আইনে আটক করা হচ্ছে। তিনি বলেন, সরকার ভিন্নমতের মানুষকে দমন-পীড়ন করতে এ আইনের ব্যবহার করছে। সরকারের নানা দুর্বলতা ঢাকতে সাংবাদিকদের সাদা পোশাকে বাড়ি থেকে তুলে নিয়ে আসছে। কাউকে গ্রেফতার দেখানো হয় আর কাউকে সীমান্তে পাওয়া যায়। এ ছাড়া সাদা পোশাকে কাউকে গ্রেফতার করা যাবে না বলে হাইকোর্টের কঠোর নির্দেশনা থাকলেও তা মানছে না সরকার। নুর আরও বলেন, আমরা সরকারের নানা অসঙ্গতি দেখেছি, অনেক নির্যাতিত হয়েছি, শাহবাগ-প্রেসক্লাবে অনেক দাঁড়িয়েছি। তৈয়ব হাবিলদার ভাই যেভাবে পরিবারসহ বঙ্গভবন/গণভবনের সামনে দাঁড়িয়েছে, সামনে আমরাও দাবি নিয়ে সরাসরি রাষ্ট্রের সর্বোচ্চ ব্যক্তিদের রাজপ্রাসাদ গণভবন ও বঙ্গভবনের সামনে দাঁড়াব।

তুরস্ককে ইইউর সদস্য করতে আবারও এরদোগানের আহ্বান

ঢাকা অফিস ॥ তুরস্ককে সদস্য করতে আবারও ইউরোপীয় ইউনিয়ন বা ইইউর প্রতি আহ্বান জানিয়েছেন দেশটির প্রেসিডেন্ট রিসেপ তাইয়েপ এরদোগান। ইউরোপীয় ইউনিয়ন গঠনের বার্ষিকী উপলক্ষে তিনি শনিবার এক চিঠিতে ওই আহ্বান জানান। এরদোগান বলেন, তুরস্কের সঙ্গে বৈষম্যের অবসান ঘটাতে হবে। তুরস্ক ও ইউরোপের মধ্যে সম্পর্কোন্নয়নের সব সুযোগ কাজে লাগাতে হবে। তুরস্ককে সদস্য করলে আর্থ-রাজনৈতিক ও নিরাপত্তা ক্ষেত্রে এই জোট শক্তিশালী হয়ে উঠবে এবং আন্তর্জাতিক অঙ্গনেও গুরুত্বপূর্ণ ভূমিকা রাখতে সক্ষম হবে বলে তিনি মন্তব্য করেন। সদস্যপদ লাভের জন্য তুরস্ক ১৯৯৯ সালে ইউরোপীয় ইউনিয়নের আবেদন করে। ২০০৫ সাল থেকে এ বিষয়ে আলোচনা শুরু হলেও এখন পর্যন্ত এ ক্ষেত্রে অনেক বাধা রয়ে গেছে। এর মধ্যে সাইপ্রাস ও গ্রিসের সঙ্গে সীমান্তবিরোধ অন্যতম। এ ছাড়া মুসলিম দেশ হওয়ার কারণেও তুরস্ককে ইউরোপীয় ইউনিয়নে নিতে চায় না এই জোটের কোনো কোনো সদস্য দেশ।

“অপারেশন কোভিড শীল্ড” এর আওতায় করোনা সংক্রমণ রোধে  দেশের দক্ষিণ-পশ্চিমাঞ্চলের জেলাগুলোতে নিরলসভাবে কাজ করে যাচ্ছে বাংলাদেশ সেনাবাহিনীর ৫৫ পদাতিক ডিভিশন

বিশ্বব্যাপী মহামারি আকারে ছড়িয়ে পড়া প্রাণঘাতী করোনাভাইরাসের প্রকোপে জর্জরিত বাংলাদেশের প্রায় প্রতিটি  জেলা। যতই দিন গড়াচ্ছে, সংক্রমণ এবং বিস্তৃতির ঝুঁকিও ততই বাড়ছে। করোনা মোকাবেলায় প্রাথমিকভাবে সরকারের দেয়া দায়িত্বের অংশ হিসেবে বাংলাদেশ সেনাবাহিনী সামাজিক দূরত্ব ও সতর্কতামূলক ব্যবস্থা গ্রহণের মাধ্যমে সাধারণ জনগণকে উৎসাহিত করার পাশাপাশি বিদেশফেরতদেরও বাধ্যতামূলক কোয়ারেন্টিনের বিষয়টি পর্যবেক্ষণ করছে। কিন্তু ক্রমান্বয়ে বেড়েছে তাদের দায়িত্বের পরিধি। এরই ধারাবাহিকতায়, “অপারেশন কোভিড শীল্ড” এর আওতায় উদ্ভূত এই ভাইরাসের সংক্রমণ রোধে দেশের দক্ষিণ-পশ্চিমাঞ্চলের জেলাগুলোতে নিরলসভাবে কাজ করে যাচ্ছে বাংলাদেশ সেনাবাহিনীর ৫৫ পদাতিক ডিভিশন। এদিকে চলমান রমজান এবং ঈদকে সামনে রেখে অর্থনীতির চাঁকা সচল রাখতে ইতিমধ্যে সীমিত আকারে দোকানপাট এবং শপিং মল খোলা রাখার ঘোষণা দিয়েছে সরকার। আর এই সুযোগে জনগন যাতে সামাজিক দূরত্ব ভুলে হরহামেশা মার্কেটিং করতে না পারে সেজন্য তৎপর রয়েছে যশোর সেনানিবাসের প্রতিটি সেনাসদস্য। এজন্য নিয়মিত বাজার মনিটারিং, জনগনকে সচেতন করতে মাইকিং কার্যক্রম পরিচালনা অব্যাহত রাখাসহ স্বাস্থ্য অধিদপ্তরের দেয়া স্বাস্থ্য বিষয়ক নির্দেশনা মেনে শপিংমল ও দোকানপাট সকাল ১০টা থেকে বিকেল চারটা পর্যন্ত খোলা রাখছেন কিনা সেটাও মনিটারিং করা হচ্ছে। এছাড়াও যশোর সেনানিবাসের মেডিকেল টিম কর্তৃক অসহায় মানুষদের মাঝে ফ্রী চিকিৎসা সেবা অব্যাহত রাখার পাশাপাশি সামাজিক দূরত্ব, হোম কোয়ারেন্টাইন নিশ্চিতকরণ ছাড়াও গণপরিবহন চলাচল নিয়ন্ত্রণ, ত্রাণ বিতরণ, অসহায় কৃষকদের ক্ষেত থেকে সবজি ক্রয় এবং দুস্থ কৃষকদের মাঝে বিভিন্ন প্রকার শস্য/সবজি বীজ বিতরণ কার্যক্রম অব্যহত  রেখেছে। সংবাদ বিজ্ঞপ্তি

‘দেশের পরিস্থিতি নিয়ে মন্তব্য করার আগে ইউরোপ-আমেরিকার দিকে তাকান’ – তথ্যমন্ত্রী

ঢাকা অফিস ॥ তথ্যমন্ত্রী ড. হাছান মাহমুদ বিএনপি’র উদ্দেশে বলেছেন, ‘দেশের করোনা পরিস্থিতি নিয়ে মন্তব্য করার আগে  ইউরোপ-আমেরিকা-ভারত-পাকিস্তানের পরিস্থিতির দিকে তাকান, তাহলেই তাদের তুলনায় আমাদের পরিস্থিতিটা বুঝতে পারবেন।’ এ সময় দেশের গণমাধ্যম বিষয়ে মন্তব্যকারী কূটনীতিকদের উদ্দেশে তথ্যমন্ত্রী বলেন, অন্যের বিষয়ে বলার আগে নিজের দেশের প্রশ্নগুলো নিরসন করাই শ্রেয়। গতকাল রোববার দুপুরে সচিবালয়ে নিজ দপ্তরে সমসাময়িক বিষয়ে সংক্ষিপ্ত প্রেস ব্রিফিংয়ে তিনি এসব কথা বলেন। মন্ত্রী বলেন, ‘সরকারের সময়োচিত নানা পদক্ষেপের কারণে এখনও অনেক দেশের তুলনায় আমাদের দেশে পরিস্থিতি ভালো। কিন্তু যেকোনো পরিস্থিতিই তৈরি হতে পারে, মারাত্মক আকারও ধারণ করতে পারে। সেজন্যও সরকার বিভিন্ন ধরনের প্রস্তুতি নিয়েছে এবং নিচ্ছে। সেইসঙ্গে জনগণকে প্রতিদিন পরিস্থিতি অবহিত করা হচ্ছে। প্রধানমন্ত্রী ও আওয়ামী লীগ সভাপতি জননেত্রী শেখ হাসিনার আহ্বানে সরকারের পাশাপাশি দলের নেতৃবৃন্দ ও জনপ্রতিনিধিরা ইতোমধ্যেই প্রায় ১ কোটি মানুষের কাছে ত্রাণ ও নগদ সহায়তা পৌঁছে দিয়েছেন এবং তা অব্যাহত রয়েছে।’ অথচ গত কয়েকদিন ধরে বিএনপি মহাসচিব মির্জা ফখরুল ইসলাম আলমগীর, যুগ্ম মহাসচিব রুহুল কবির রিজভী আহমেদসহ বিএনপি নেতারা নানাধরণের কথা বলে আসছেন, উল্লেখ করে আওয়ামী লীগের যুগ্ম সাধারণ সম্পাদক ড. হাছান বলেন, ‘তাদের এই কথা বলার মূল উদ্দেশ্য হচ্ছে,  সরকার ভালো উদ্যোগগুলো যাতে বাধাগ্রস্ত হয়। সেই লক্ষ্য নিয়েই তারা এসব কথা বলছেন। অথচ এই সময় বাদানুবাদের রাজনীতি কোনভাবেই কাম্য নয়।’ ‘পৃথিবীর অন্যান্য দেশে সমস্ত রাজনৈতিক দল এই দুর্যোগের মধ্যে সরকারকে সহযোগিতা করার জন্য তারা এগিয়ে এসেছে; এমনকি পার্শ্ববর্তী দেশ ভারতে সোনিয়া গান্ধী অর্থাৎ কংগ্রেস সভাপতি ও বিরোধী কংগ্রেস জোটের চেয়ারপার্সন চিঠি দিয়ে তাদের সরকারের নানা উদ্যোগের প্রশংসা করেছেন এবং সরকারকে এই বৈশ্বিক দুর্যোগ মোকাবিলায় সহযোগিতা করার জন্য চিঠি দিয়ে জানিয়েছেন, অথচ আমাদের দেশে বিএনপি এবং বিএনপি নেতৃত্বাধীন জোটের নেতৃবৃন্দ এই কাজটি করতে ব্যর্থ হয়েছে’, জানান তথ্যমন্ত্রী। ‘আবার অনেককে দেখি, তারা গণমাধ্যমে খুব সোচ্চার, কিন্তু একমুঠো চাল নিয়েও তারা জনগণের কাছে যাননি, মানুষের পাশে দাঁড়াননি; আর বিএনপিও কিছু ফটোসেশনের মধ্যই ব্যস্ত’ মন্তব্য করেন তিনি। ‘আর আমরা দেখতে পাচ্ছি, বিএনপি ঢাকা শহরে কিছু লোক দেখানো ফটোসেশন করা ছাড়া আসলে জনগণের পাশে যেভাবে দাঁড়ানো প্রয়োজন ছিল এবং তাদের সামর্থ্য ছিল, সেই অনুযায়ী তারা দাঁড়ায়নি’ বলেন ড. হাছান মাহমুদ।

সরকারের সমালোচনার নামে বিএনপি হীন কৌশল অবলম্বন করছে – কাদের 

ঢাকা অফিস ॥ আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক এবং সড়ক পরিবহন ও সেতুমন্ত্রী ওবায়দুল কাদের বলেছেন, সরকারের সমালোচনার নামে বিএনপি রাজনৈতিক হীন কৌশল অবলম্বন করেছে। তিনি বলেন, ‘কোন ঘটনার প্রকৃত সত্য তুলে না ধরে তা টুইস্ট করে রাজনৈতিক প্রোপাগান্ডা হিসাবে প্রচার করাও অপরাধ। সত্যতা যাচাই না করে জনমনে বিভ্রান্তি ছড়ানোর অপকৌশল কিছুতেই সমর্থনযোগ্য নয়।’ ওবায়দুল কাদের গতকাল রোববার সকালে তার সরকারি বাসভবনে সমসাময়িক বিষয় নিয়ে আয়োজিত আনলাইন সংবাদ সম্মেলনে এ কথা বলেন। বিএনপি মহাসচিব মির্জা ফখরুল ইসলাম আলমগীরের বক্তব্য দেশের রাজনৈতিক ও গণসমাজে বিভ্রান্তি তৈরির অপকৌশল উল্লেখ করে আওয়ামী লীগ সাধারন সম্পাদক বলেন, ‘ত্রাণ বিতরণের কাজে অস্বচ্ছ কিছু হলে প্রকৃত সত্য যে কেউ তুলে ধরতে পারে। কিন্তু সেটিকে টুইস্ট করে রাজনৈতিক প্রপাগান্ডা হিসেবে প্রচার করাটা নিশ্চয়ই অপরাধের শামিল। যেকোন পদক্ষেপের সাথে যে কারোর একমত বা দ্বিমত পোষণ করার সুযোগ রয়েছে।’ তিনি বলেন, প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার নেতৃত্বে পরিচালিত সরকার নাগরিকদের গণতান্ত্রিক অধিকারের প্রতি শ্রদ্ধাশীল। তবে সত্যতা যাচাই না করে জনমনে বিভ্রান্তি ছড়ানোর অপকৌশল কিছুতেই সমর্থনযোগ্য নয়। ডিজিটাল নিরাপত্তা আইনের অপপ্রয়োগের অভিযোগের জবাবে ওবায়দুল কাদের বলেন, মহামারী তথা দুর্যোগের এই সময় প্রয়োজন সকলের ঐক্যবদ্ধ প্রয়াস। এ কথা আমরা বারবার বলেছি। আমরা একথাও বলেছি ডিজিটাল নিরাপত্তা আইন যাতে অপপ্রয়োগ না হয় সে ব্যাপারে স্বরাষ্ট্র মন্ত্রণালয় সতর্ক থাকবে। যারা অপপ্রয়োগ করবে তাদের বিরুদ্ধে ব্যবস্থা নেয়া হবে। সরকার ও দলের ত্রাণ তৎপরতার কথা তুলে ধরে তিনি বলেন, প্রধানমন্ত্রীর নির্দেশনায় এ পর্যন্ত দেশে চার কোটি মানুষের মাঝে নগদ ও ত্রাণ সহায়তা দেয়া হয়েছে। এ ছাড়া দলীয়ভাবে সারাদেশে নেতাকর্মীরা প্রায় এক কোটি পরিবারের মাঝে খাদ্য সহায়তা ও নগদ সহায়তা প্রদান করেছে। ত্রাণ চুরির অভিযোগ প্রসঙ্গে তিনি বলেন, সারাদেশে বিভিন্ন পর্যায়ের জনপ্রতিনিধির সংখ্যা ৬১ হাজার ৫৬৯ জন। এদের সবার বিরুদ্ধে অভিযোগ নেই। যে ক’জনের বিরুদ্ধে অভিযোগ এসেছে সরকার তাৎক্ষণিকভাবে তাদের বিরুদ্ধে শাস্তি মূলক ব্যবস্থা নিয়েছে। অপরাধী দলীয় লোক হলেও তার বিরুদ্ধে ব্যবস্থা নেয়া হয়েছে। করোনার কারণে প্রবাসী বাঙালিরা কর্মহীন হয়ে পড়েছে উল্লেখ করে কাদের বলেন, বিশ্বে প্রায় এক কোটি ২০ লাখ প্রবাসী বাঙালি রয়েছে। এদের অধিকাংশই কর্মহীন হয়ে পড়েছে এবং অনেকেই ঝুঁকিতে রয়েছে। এ ব্যাপারে বিভিন্ন দেশে আমাদের দূতাবাসগুলোকে প্রয়োজনীয় ব্যবস্থা নিতে নির্দেশনা দিতে পারে পররাষ্ট্র মন্ত্রণালয়। সড়ক পরিবহন মন্ত্রী বলেন, দেশের সামগ্রিক পরিস্থিতি বিবেচনায় সরকার দোকানপাট তথা বাণিজ্যকেন্দ্র সীমিত পর্যায়ে খোলার অনুমতি দিয়েছে। ব্যবসায়ী ক্রেতা-বিক্রেতা সকলকে আমি স্বাস্থ্যবিধিসহ সামাজিক দূরত্ব মেনে চলার আহ্বান জানাচ্ছি।

যুক্তরাজ্যে আটকেপড়া বাংলাদেশি শিক্ষার্থীরা দেশে ফিরছেন

ঢাকা অফিস ॥ করোনাভাইরাসের প্রভাবে যুক্তরাজ্যে আটকেপড়া ১৩০ জনেরও বেশি শিক্ষার্থীর আজ সোমবার সকালে দেশে ফেরার কথা রয়েছে। লন্ডনে অবস্থিত বাংলাদেশ হাইকমিশন জানিয়েছে, গতকাল রোববার বিমান বাংলাদেশ এয়ারলাইন্সের একটি বিশেষ চার্টার্ড ফ্লাইট বিজি ৪০৪১ ঢাকার উদ্দেশে লন্ডন ছেড়ে যায়। আজ সোমবার সকালে হযরত শাহজালাল আন্তর্জাতিক বিমানবন্দরে বিশেষ বিমানটি অবতরণ করবে। এরআগে লন্ডনে বাংলাদেশ হাইকমিশনের অনুরোধে সরকার জাতীয় পতাকাবাহী এবং বাংলাদেশ বিমান বাহিনী কল্যাণ ট্রাস্ট (বিএএফডব্লিউটি) কর্তৃক চার্টার্ডে পরিচালিত এ ফ্লাইটটির ব্যবস্থা করে। যুক্তরাজ্যে নিযুক্ত বাংলাদেশের হাইকমিশনার সাইদা মুনা তাসনিম লন্ডন হিথ্রো বিমানবন্দরে (টার্মিনাল ২) এসব শিক্ষার্থীদের সাথে দেখা করতে পারেন। হাইকমিশনার তাসনিম বলেন, ‘এ বিমানটি পরিচালনা করার উদ্যোগ নেয়ায় আমরা বাংলাদেশ সরকার, বিশেষত প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা, পররাষ্ট্র মন্ত্রণালয় এবং বাংলাদেশ বিমান বাহিনীর প্রতি কৃতজ্ঞ।’ তিনি জানান, প্রাথমিকভাবে ২০০ জনেরও বেশি শিক্ষার্থী বুকিং দিলেও বাংলাদেশে ফিরে প্রাতিষ্ঠানিক কোয়ারেন্টাইনে থাকার ভয়ে অনেকেই শেষ মুহুর্তে তাদের বুকিং বাতিল করেছে। তবে যাত্রীদের স্বাস্থ্য মূল্যায়নের ওপর ভিত্তি করে লন্ডনে বাংলাদেশ হাইকমিশন কর্তৃক জারি করা স্বাস্থ্য ছাড়পত্রে হাইকমিশনার তাসনিম সকল শিক্ষার্থীকে আশ্বাস দিয়েছেন যে তাদেরকে কেবল হোম কোয়ারেন্টাইনে থাকতে হবে। একইভাবে ঢাকা থেকে লন্ডন যাতায়াতকারী সকল যাত্রীদের জন্য হোম কোয়ারেন্টাইনের ব্যবস্থা করেছে হাইকমিশন।

আলমডাঙ্গায় গোডাউনে পচা চাল রাখার অপরাধে ব্যবসায়ীকে ৫ লক্ষ টাকা জরিমানা

আলমডাঙ্গা প্রতিনিধি ॥ আলমডাঙ্গায় ভ্রাম্যমান আদালতে আলমডাঙ্গার এক মিলচাতালের মালিককে গোডাউনে পচা চাল রাখার অপরাধে ৫ লক্ষ টাকা জরিমানা করেছে। গতকাল রবিবার  বেলা ১১ টার দিকে আলমডাঙ্গা অন্নপুর্না রাইস মিলের মালিক অশোক কুমার সাহার ছেলে অসিম কুমার সাহার গোডাউনে অভিযান চালিয়ে গোডাউনে প্রায় ১শ বস্তা পচা চাল পাওয়ায় উপজেলা নির্বাহী অফিসার মোঃ লিটন আলী ভ্রাম্যমান আদালত বসিয়ে অসিম সাহাকে অত্যাবশ্যকিয় পন্য নিয়ন্ত্রন আইন ১৯৫৬ ধারায় ৫ লক্ষ টাকা জরিমানা করেছে। এসময় উপস্থিত ছিলেন উপজেলা খাদ্য কর্মকর্তা মোফাখ্খাইরুল ইসলাম, খাদ্য পরিদর্শক রাকিব উদ্দিন, খাদ্য গুদাম রক্ষক মিয়ারাজ হোসেন, প্রকল্প কর্মকর্তা এনামুল হক প্রমুখ। উলে¬খ্য গত শনিবার আলমডাঙ্গা  কালিদাসপুর রেলগেটের অদূরে জিকে, ক্যানেলপাড়ে ৫০ বস্তা পচা চাল  ফেলে রাখা হয়েছিল।  ১৬ সালে বিদেশ থেকে আসা খাদ্য মন্ত্রনালয়ের সীলযুক্ত  পুরানো বস্তায়  ভরে শনিবার সন্ধ্যায় কেউ ওই স্থানে ফেলে রেখে যায়। এ সংবাদ জানার পর উপজেলা নির্বাহী অফিসারসহ পুলিশ প্রশাসন ঘটনাস্থল পরিদর্শন করেন। ঐ ঘটনার পর পুলিশ প্রশাসন, উপজেলা প্রশাসন বিষয়টি নিয়ে ব্যাপক তৎপরতা শুরু করে। কিন্ত কে বা করা ঐ পচা চাল জিকে ক্যানেলে ফেলে রেখে যায় তার হদিস মেলেনি। গতকাল সকাল সাড়ে ৯টার দিকে উপজেলা নির্বাহী অফিসার মোঃ লিটন আলী, থানা অফিসার ইনচার্জ আলমগীর কবিরসহ সঙ্গিয় ফোর্স জিকে ক্যানেলে উলে¬খিত ফেলে রাখা ৫০ বস্তা পচা চাল মাটিতে পুতে  ফেলেন। এর পর গোপন সংবাদের ভিত্তিতে অভিযান চালিয়ে অসিম কুমার সাহার গুদামে পচা চাল উদ্ধার করে এবং গোডাউনে থাকা চাল সহ গোডাউন সিলগালা করে দেন।

মিরপুরে ইনু এমপির পক্ষ থেকে ফেস মাস্ক বিতরণ

কুষ্টিয়া-২ মিরপুর-ভেড়ামারা আসনের সংসদ সদস্য ও তথ্য মন্ত্রনালয় সম্পর্কিত স্থায়ী কমিটির সভাপতি হাসানুল হক ইনু এমপির পক্ষ থেকে গতকাল সকালে মিরপুর উপজেলা নির্বাহী অফিসার লিংকন বিশ্বাস ও সহকারী কমিশনার (ভুমি) রাকিবুল হাসানের নিকট ১০০টি ফেস মাস্ক হস্তান্তর করা হয় এবং মিরপুর উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে স্বাস্থ্য ও পরিকল্পনা কর্মকর্তা ডাঃ রাশেদ মাহমুদ  রোকনুজ্জামান ও ডাঃ শামসুন নাহার নিকট ২০০টি ফেস মাস্ক হস্তান্তর করা হয়। এসময় উপস্থিত ছিলেন মিরপুর উপজেলা জাসদের সাধারন সম্পাদক আহাম্মদ আলী, যুগ্ম সাধারন সম্পাদক কারশেদ আলম, সাংগঠনিক সম্পাদক আফতাব উদ্দিন, বহলবাড়ীয়া ইউনিয়ন জাসদের সভাপতি সাইদুর রহমান মন্টু, আমলা ইউনিয়ন জাসদের সভাপতি আজাম্মেল হকসহ বিভিন্ন নেতৃবৃন্দ। সংবাদ বিজ্ঞপ্তি

ঝিনাইদহে সড়ক দুর্ঘটনায় ইউপি সদস্য নিহত

ঝিনাইদহ প্রতিনিধি ॥ ঝিনাইদহের মহেশপুরে ট্রাক- মোটরসাইকেল মুখোমুখি সংঘর্ষে গতকাল রবিবার সকাল ৯টার এক ইউপি সদস্য নিহত হয়েছেন এবং মোটরসাইকেলে থাকা অন্যজন গুরুতর আহত হয়েছে। তাকে মহেশপুর সদর হাসপাতালে ভর্তি করা হয়েছে। থানা পুলিশ সূত্রে জানা যায় মহেশপুর উপজেলার আদমপুর ইউনিয়নের পরিষদের সদস্য লুৎফর রহমান ও সমাজসেবা কর্মী আব্দুল কুদ্দুস মহেশপুরের উদ্দেশ্যে রওনা দিলে ভালাইপুরের ব্রিজ পার হয়ে সাহেববাড়ি পৌঁছালে বিপরীত দিকে বিপরীত দিক থেকে আসা ট্রাকের সাথে মুখোমুখি সংঘর্ষ হলে ইউপি সদস্য লুৎফর রহমান ঘটনাস্থলে নিহত হয় এবং অন্যজনকে গুরুতর অবস্থায় মহেশপুর হাসপাতালে ভর্তি করা হয়েছে বলে প্রাথমিক সুত্রে খবর পাওয়া যায়।

স্বাস্থ্য ব্যবস্থার দুর্বলতা স্বীকার করলেন চীনা কর্মকর্তা

ঢাকা অফিস ॥ চীনে গণস্বাস্থ্য ব্যবস্থায় যে দুর্বলতা রয়েছে তা স্বীকার করেছেন দেশটির এক শীর্ষ কর্মকর্তা। তিনি বলেছেন, করোনাভাইরাস মহামারি চীনের গনস্বাস্থ্য ব্যবস্থার দুর্বলতাকে প্রকাশ করেছে। চীনের স্বাস্থ্য ব্যবস্থা নিয়ে এই বিরল স্বীকারোক্তি দেশটির ন্যাশনাল হেলথ কমিশনের পরিচালক লি বিনের। করোনাভাইরাসের বিরুদ্ধে চীন সঠিকভাবে পদক্ষেপ নিতে পারেনি। শুরু থেকেই দেশটিকে নিয়ে নানা সমালোচনা চলছে। এর মধ্যেই এমন মন্তব্য করলেন বিন। তবে তার মতে, চীন এখন তাদের রোগ প্রতিরোধ ব্যবস্থা, গণস্বাস্থ্য ব্যবস্থা এবং তথ্য সংগ্রহ ব্যবস্থার উন্নয়ন ঘটাবে। এর মধ্যেই মহামারির বিরুদ্ধে লড়াইয়ে উত্তর কোরিয়াকে সহায়তার প্রস্তাব দিয়েছে চীন। এক সংবাদ সম্মেলনে লি বলেন, চীনের শাসন ব্যবস্থার জন্য একটি উল্লেখযোগ্য চ্যালেঞ্জ ছিল এই মহামারি। আর বড় ধরণের মহামারি সামাল দেয়ার ক্ষেত্রে গণস্বাস্থ্য ব্যবস্থার দুর্বলতা সামনে এসেছে। সাম্প্রতিক সময়ে বার বার চীনের সমালোচনা করে আসছে যুক্তরাষ্ট্র। করোনা পরিস্থিতিকে নিয়ন্ত্রণ করতে ব্যর্থ হয়েছে বলে চীনের বিরুদ্ধে অভিযোগ ওয়াশিংটনের। সম্প্রতি মার্কিন প্রেসিডেন্ট ডোনাল্ড ট্রাম্প বলেছেন, চীন এই মহামারি পরিস্থিতি শুরুতেই নিয়ন্ত্রণ করতে পারত। কিন্তু তারা ব্যর্থ হয়েছে। ফলে সারাবিশ্বকে এখন ভুগতে হচ্ছে। এদিকে, লি বিন বলেছেন, স্বাস্থ্য কমিশন এর পুরো ব্যবস্থাকে কেন্দ্রীয়করণ করে এবং বিশালাকার তথ্য ও কৃত্রিম বুদ্ধিমত্তা ব্যবহার করে সমস্যার সমাধান করবে। করোনাভাইরাসের বিরুদ্ধে প্রাথমিক ব্যবস্থা গ্রহণ নিয়ে দেশে এবং বাইরে কঠোর সমালোচনার মুখে পড়েছে চীন। ক্ষমতাসীন কমিউনিস্ট পার্টির বেশ কয়েকজন প্রাদেশিক এবং স্থানীয় কর্মকর্তাকে বরখাস্ত করা হয়েছে। তবে দলটির শীর্ষ কোন নেতার বিরুদ্ধে কোন ব্যবস্থা নেয়া হয়নি। তবে গণমাধ্যমের উপর সেন্সরশিপ এবং রাষ্ট্রীয় নিয়ন্ত্রণ শিথিল করার আহ্বানের বিষয়ে কোন মন্তব্য করা হয়নি। চীনের রাষ্ট্রীয় সংবাদ মাধ্যম বলছে, উত্তর কোরিয়ার সর্বোচ্চ নেতা কিম জং উন কোভিড-১৯ এর বিরুদ্ধে লড়াইয়ে সাফল্যের জন্য শি জিন পিংকে অভিনন্দন জানানোর পর দেশটিকে সহায়তার প্রস্তাব দিয়েছে চীন। তবে গত কয়েক মাসের প্রচেষ্টায় চীনে আক্রান্ত ও মৃত্যুর সংখ্যা কমতে দেখা গেছে। দেশটির ন্যাশনাল হেলথ কমিশনের তথ্য অনুযায়ী, নতুন করে আরও ১৪ জন করোনায় আক্রান্ত হয়েছে। ফলে দেশটিতে এখন পর্যন্ত করোনায় আক্রান্তের সংখ্যা ৮২ হাজার ৯০১।

সমবেদনার মাস রমজান

আ.ফ.ম নুরুল কাদের ॥ রমজানুল মোবারকের আজ ১৭ তারিখ। অফুরন্ত কল্যাণের বার্তাবাহী এ মাসের মাহাত্ম প্রসঙ্গে হজরত সালমান ফারসি রাজিয়াল¬াহ আনহু বর্ণিত হাদীসে মহানবী সঃ ইরশাদ করেছেন-এটা সমবেদনার মাস। পারস্পরিক সম্প্রীতি ও সহানুভূতি পৃথিবীতে মানবজাতির অস্তিত্ব ও স্থায়িত্বের অন্যতম শর্ত। তাই ইসলামে এই দিকটি অত্যন্ত গুরুত্বপূর্ণ। কুরআন মজিদে মাতা-পিতা, আত্মীয়স্বজন ও সব মানুষের সাথে সদাচার ও সহানুভূতিমূলক আচরণের ওপর বিশেষ গুরুত্বারোপ করা হয়েছে। ইসলামে আত্মীয় ও প্রতিবেশীদের প্রতি কর্তব্য পালনের ওপর এতই জোর দেয়া হয়েছে, বিশ্বের অন্য কোনো ধর্ম ও আদর্শে যার নজির পাওয়া যায় না। মহানবী সঃ বলেন, জিবরাইল আলাইহিস সালাম আমাকে প্রতিবেশীর অধিকার আদায়ে এতই তাগিদ দিতে থাকেন যে আমি মনে করেছিলাম প্রতিবেশীকে উত্তরাধিকারী সাব্যস্ত করা হবে। আদম -হাওয়ার সন্তান হিসেবে পৃথিবীর সব মানুষ একই পরিবারের সদস্য এবং তাদের পারস্পরিক সম্পর্ক হতে হবে সহমর্মিতা ও সহানুভূতিমূলকÑ এটাই ইসলামের শিক্ষা। কুরআন মজিদে মুসলমানদের একে অপরের ভাই বলে আখ্যায়িত করা হয়েছে। (সূরা হুজুরাত-১০) । হাদিস শরীফে পুরো সৃষ্টিজগৎকে আল¬াহর পরিবার সাব্যস্ত করে সৃষ্টির সেবাকে আল¬াহর প্রিয়পাত্র হওয়ার উপায় বলে বর্ণনা করা হয়েছে। হজরত আনাস (রাঃ) আনহু বর্ণনা করেন, হজরত নবী করিম সাঃ এরশাদ করেন, সৃষ্টিকুল আল¬াহর পরিবার। এই পরিবারের কল্যাণে যে ব্যক্তি আত্মনিয়োগ করে সে আল¬াহর নিকট সবচেয়ে প্রিয়। মহানবী সঃ পুরো মুসলিম উম্মাহকে একটি দেহের সাথে তুলনা করেছেন। তিনি বলেন, কারো  চোখে যন্ত্রণা হলে যেমন পুরো শরীর অস্বস্তিবোধ করে, মাথা ব্যথা হলে যেমন পুরো শরীর অসুস্থ হয়,  গোটা মুসলিম উম্মাহ এমনই। পারস্যের কবি শেখ সাদি রহ: তার বিখ্যাত গুলিস্তান গ্রন্থে কাব্যিক ভাষায় বিষয়টি তুলে ধরেছেন। তিনি বলেন, আদম সন্তানেরা একটি দেহের অঙ্গ প্রত্যঙ্গের মতো।  কেননা তাদের সৃষ্টির মূল উৎস একটাই। একটি অঙ্গে যখন যন্ত্রণা হয় অন্য অঙ্গগুলোরও তখন স্বস্তি থাকে না। অন্যদের ব্যথায় যদি নির্বিকার থাক, তাহলে তুমি মানুষ নামে আখ্যায়িত হওয়ার যোগ্য নও। ইসলাম এমন সমাজব্যবস্থার নির্দেশনা দেয় যেখানে একে অপরের সুখ ও আনন্দে যেমন শরিক হবে তেমনি দুঃখকষ্টের  বেলায়ও সবাই একে অপরের পাশে এসে দাঁড়াবে। মাহে রমজানে সিয়াম সাধনার মাধ্যমে মুমিনদের মধ্যে পরস্পরের মধ্যে সহানুভূতি ও সমবেদনার গুণ অর্জিত হয়। বিশেষ করে যারা দুস্থ, অনাহারের কষ্ট যাদের সহ্য করতে হয় তাদের ব্যথা বোঝার সুযোগ হয় সিয়াম পালনের কারণে। যারা কখনো ক্ষুধার যন্ত্রণা  পোহায়নি, খাবারের অভাব কাকে বলে তা যারা জানে না তারা কিভাবে বুঝবে অভাবী লোকদের ব্যথা ? লাগাতার একমাস রোজা রাখার কারণে এই ব্যক্তিরা নিরন্ন মানুষের প্রতি সদয় হওয়ার প্রয়োজনীয়তা অনুভব করতে পারে। পুরো একমাস রোজার হুকুম  দেয়ার একটা তাৎপর্য বোঝা যায় এখান থেকে।  কেননা দু-এক দিন খাবার গ্রহণে ব্যত্যয়ের কোনো প্রভাব নাও পড়তে পারে। কিন্তু লাগাতার একমাস সুনির্দিষ্ট দীর্ঘ সময় খাবার গ্রহণ থেকে বাধ্যতামূলক বিরত থাকার অভিজ্ঞতা অবশ্যই একজন মানুষকে সচেতন করবে। অভাবী ও গরিব মানুষের প্রতি অন্তরে দয়ার উদ্রেক হবে এবং তাদের কল্যাণে ভূমিকা পালনের প্রয়োজনীয়তা উপলব্ধি করবে। প্রকৃতপে অধীনস্থদের প্রতি সদয় আচরণের তাগিদ রয়েছে সারা বছরের জন্য। তাই রমজানের এই শিক্ষা যদি সারা বছর অনুসরণ করা যায় তাহলে  যেমন সিয়াম পালন সার্থক হবে তেমনি সমাজে নেমে আসতে পারে জান্নাতি পরিবেশ।

সরকারের সাধারণ ক্ষমা

জরিমানার টাকা পরিশোধ করলেন কারা কর্তৃপক্ষ

কুষ্টিয়া জেলা কারাগারের ৭৭ বন্দীর মুক্তি  

আরিফ মেহমুদ ॥ কোভিড-১৯ করোনা পরিস্থিতিতে সরকারের সাধারণ ক্ষমার আওতায় বন্দিদের সংখ্যাধিক্য কমাতে লঘু অপরাধে দন্ডিত অনাধিক এক বছর সাজাপ্রাপ্ত বন্দিদের মুক্তি প্রদানে সদাশয় সরকারের সিদ্ধান্ত মোতাবেক কুষ্টিয়া জেলা কারাগার থেকে ৭৭ জন বন্দির সাজা মওকুফ করা হয়। ইতোমধ্যে ৪৯ জন বন্দিকে মুক্তি প্রদান করা হলেও জরিমানা অনাদায়ে অসহায় ও নিঃস্ব ২৮ জন বন্দির মুক্তি পাওয়া আটক থাকে। গতকাল রবিবার মানবিক কারনে মানুষ মানুষের জন্য মহানুভব কুষ্টিয়া জেল সুপারের নির্দেশে কারা কর্তৃপক্ষের ব্যবস্থাপনায় এবং জি.আই.জেড-এর সহায়তায় জরিমানার টাকা পরিশোধ করায় তাদের মুক্তি দেয়া হয়েছে।

গত শনিবারে ২৪ জন বন্দির মুক্তি দেয়াসহ তিন দফায় মোট ৭৭ জন বন্দী মুক্তি পেয়েছেন। মুক্তি পাওয়ার প্রক্রিয়ায় আছেন আরো  বেশ কিছু বন্দি। করোনাভাইরাস মহামারি আকার ধারন করায় সরকার কারাগারগুলোর হাজতি ও কয়েদিদের সুস্থতার স্বার্থে বেশ কিছু বন্দিকে মুক্তি দেওয়ার সিদ্ধান্ত নেয় সরকার। বিভিন্ন জাতীয় দিবস ও ঈদ উপলক্ষেও কিছু বন্দিকে মুক্তি দেওয়া হয়। এবারের করোনা পরিস্থিতিতে তিন ক্যাটাগরির বন্দিরা মুক্তি পাবেন বলে স্বরাষ্ট্র মন্ত্রণালয় জানায়। ক্যাটাগরি তিনটি হলো, শারীরিকভাবে অক্ষম ব্যক্তি, স্বল্পমেয়াদের সাজাপ্রাপ্ত এবং দীর্ঘমেয়াদের সাজাপ্রাপ্ত; যারা ইতিমধ্যে ২০ বছর কারাভোগ করেছেন। কুষ্টিয়া  জেলা কারাগার থেকে ইতোপূর্বে দফায় দফায় মোট ৪৯ জনকে মুক্তি  দেয়া হয়েছে। কুষ্টিয়া জেলা কারাগারের জেল সুপার জাকের  হোসেন জানান, করোনা ভাইরাসের প্রকোপের কারনে কুষ্টিয়া  জেলা কারাগারের সংখ্যাধিক্য বন্দি কমাতে সরকার ফৌজদারি কার্যবিধির ৪০১ (১) ধারার প্রদত্ত ক্ষমতা বলে লঘুদন্ডে দন্ডিত তৃতীয় ধাপে ৭৭ জন বন্দির সাজা মওকুফ করেন। তিনি আরো জানান, রবিবারের ২৮ বন্দির রায় ঘোষনার সময় প্রত্যেকের ৫শত টাকা থেকে ১ হাজার টাকা পর্যন্ত জরিমানা করা হয়েছিল। তারা সরকারের সাধারণ ক্ষমার আওতায় থাকলেও জরিমানার টাকা পরিশোধ করতে না পারায় মুক্তি পাচ্ছিল না। বন্দিরা গরীব ও অসহায় হওয়ার কারনে রবিবার সকালে কুষ্টিয়া কারা কর্তৃপক্ষের ব্যবস্থাপনায় এবং জি.আই.জেড-এর সহায়তায় বন্দিদের জরিমানার বেশ কিছু টাকা পরিশোধ করে তাদের মুক্তি দেয়া হল। মুক্তির প্রাক্কালে নিঃস্ব অসহায় বন্দিদের কোন নিকট আত্মীয়-স্বজন না আসায় বন্দিদের আবেদনে কুষ্টিয়া কারা কর্তৃপক্ষ তাদের যাতায়াত ভাড়া প্রদান করেন। বন্দিরা জেল থেকে মুক্তি পেয়ে বাড়ি ফেরার পথে কোন আইনী কিংবা লোকাল কোন ঝামেলা না হয় সে জন্য জেল থেকে মুক্তি পেয়ে তারা বাড়ি ফিরছে এই প্রমান হিসেবে কারাকর্তৃপক্ষ বন্দিদের একটি সনদ প্রদান করেন। এছাড়াও কুষ্টিয়ার জেলা প্রশাসক মোঃ আসলাম হোসেনের নির্দেশে কুষ্টিয়ার ত্রাণ তহবিল থেকে মুক্তির প্রাক্কালে নিঃস্ব অসহায় প্রত্যেক বন্দিকে মানবিক সহায়তার খাদ্য সামগ্রী প্রদান করা হয়। জেলা প্রশাসকের পক্ষ থেকে এন.ডি.সি. নির্বাহী ম্যাজিস্ট্রেট  মোসাব্বেরুল ইসলাম এ খাদ্য সামগ্রী প্রদান করেন।

এ সময় জেলার এনামুল কবির, ডেপুটি জেলার ইয়াসমীন জাহান জুঁইসহ অন্যান্য কর্মকর্তা ও কর্মচারিগণ উপস্থিত ছিলেন। বন্দিগণ অবশিষ্ট সাজা মওকুফ ও ত্রাণ পেয়ে খুব খুশি। মুক্তিপ্রাপ্ত এ সকল বন্দিরা প্রায় সবাই শ্রমজীবী এবং অসহায়। মুক্তির সময় এ মানবিক সহায়তা পেয়ে দুঃস্থ বন্দিরা আনন্দিত হয়ে জেলা প্রশাসক ও কারা কর্তৃপক্ষকে ধন্যবাদ জানিয়েছেন।

সদ্য নিয়োগপ্রাপ্ত ২ হাজার চিকিতসককে ১৫ মে’র মধ্যে যোগদানের নির্দেশ

ঢাকা অফিস ॥ সদ্য নিয়োগপ্রাপ্ত দুই হাজার চিকিৎসককে পদায়ন দিয়েছে স্বাস্থ্য অধিদফতর। ১৫ মে’র মধ্যে তাদের যোগদানের নির্দেশ দেয়া হয়েছে। শনিবার অধিদফতরের পরিচালক প্রশাসন ডাক্তার মো. বেলাল হোসেন স্বাক্ষরিত প্রজ্ঞাপনে নিয়োগপ্রাপ্ত চিকিৎসকদেরকে স্বাস্থ্য ক্যাডারের সহকারী সার্জন পদে রাজধানী ও রাজধানীর বাইরে বিভিন্ন স্বাস্থ্যসেবা প্রতিষ্ঠানে নিয়োগ দেয়া হয়। প্রজ্ঞাপনে বলা হয়, পদায়নকৃত চিকিৎসকরা করোনা ডেডিকেটেড হাসপাতাল ও প্রতিষ্ঠানের দায়িত্ব পালন করবেন। চাকরিতে যোগদানকৃত চিকিৎসকদের ৩০০ টাকা মূল্যমানের নন-জুডিশিয়াল স্ট্যাম্পে নিজে বা তার পরিবারের অন্য সদস্যদের জন্য কোনো যৌতুক নিবেন না এবং কোনো যৌতুক দিবেন না মর্মে অঙ্গীকার নামা সম্পাদন করতে হবে যা দেশের বর্তমান পরিস্থিতিতে যোগদানের সময় জমা না দিয়ে করোনা পরিস্থিতি স্বাভাবিক হলে অবশ্যই যথাযথ কর্তৃপক্ষ বরাবর দাখিল করতে হবে। সরকারি চাকরিবিধি অনুযায়ী সকল স্থাপনার (স্ত্রীর সম্পত্তিসহ) বিবরণ সম্বলিত একটি ঘোষণাপত্র যথাযথ কর্তৃপক্ষের মাধ্যমে করোনা পরবর্তী সময় অবশ্যই অধিদফতরে প্রেরণ করতে হবে। বেসরকারি প্রতিষ্ঠানের সংযুক্ত কর্মকর্তারা স্বাস্থ্য অধিদফতরের নতুন ভবনের যোগদান করবেন।

গণস্বাস্থ্য কেন্দ্রের কিটের কার্যকারিতা পরীক্ষা শুরু সোমবার

ঢাকা অফিস ॥ গণস্বাস্থ্য কেন্দ্রের গবেষকদের উদ্ভাবিত করোনাভাইরাস শনাক্তে ‘জিআর র‌্যাপিড ডট ব্লট’ কিটে কার্যকারিতা পরীক্ষা শুরু হবে বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিব মেডিক্যাল বিশ্ববিদ্যালয় হাসপাতালে (বিএসএমএমইউ)। সোমবার বিএসএমএমইউ হাসপাতালের নিজস্ব ল্যাবে এই পরীক্ষা শুরু হবে। গতকাল রোববার দুপুরে বিএসএমএমইউ হাসপাতাল কর্তৃপক্ষের সঙ্গে বৈঠকে এই সিদ্ধান্ত হয় জানা গেছে। সোমবার থেকে বিএসএমএমইউ হাসপাতালের নিজস্ব ল্যাবে আমাদের বিজ্ঞানীদের তৈরি করোনাভাইরাস শনাক্তকরণ কিটের কার্যকারিতা পরীক্ষা শুরু হবে। গতকাল তাদের সঙ্গে বৈঠক এই সিদ্ধান্ত হয়েছে। তিনি জানান, বিএসএমএমইউ হাসপাতাল কর্তৃপক্ষ ১০০ কিট চেয়েছে। আগামীকাল তাদেরকে সেই কিট দেওয়া হবে। গণস্বাস্থ্যের করোনাভাইরাস শনাক্তকরণ কিট পরীক্ষা নিয়ে বিতর্কের পর ৩০ এপ্রিল ওষুধ প্রশাসন অধিদফতরের থেকে বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিব মেডিক্যাল বিশ্ববিদ্যালয় হাসপাতালে (বিএসএমএমইউ) বা আইসিডিডিআর,বিতে গণস্বাস্থ্য কেন্দ্রের উদ্ভাবিত কিটের কার্যকারিতা পরীক্ষার জন্য অনুমিত দেওয়া হয়। এরপর গত ২ মে কিটের কার্যকারিতা পরীক্ষার জন্য বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিব মেডিক্যাল বিশ্ববিদ্যালয়ের ভাইরোলজি বিভাগের সাবেক চেয়ারম্যান অধ্যাপক ডা. শাহীনা তাবাসসুমকে প্রধান করে ছয় সদস্যের কমিটি গঠন করা হয়। গণস্বাস্থ্য কেন্দ্রের গবেষক ড. বিজন কুমার শীলের নেতৃত্বে ড. নিহাদ আদনান, ড. মোহাম্মদ রাঈদ জমিরউদ্দিন, ড. ফিরোজ আহমেদ এই কিট তৈরি করেন।

দৌলতপুর সীমান্তে বিজিবি’র ত্রাণ বিতরণ

দৌলতপুর প্রতিনিধি ॥ কুষ্টিয়ার দৌলতপুর সীমান্তে বর্ডার গার্ড বাংলাদেশ বিজিবি করোনাকালীন কর্মহীন, অসহায়, দরিদ্র, অস্বচ্ছল ও দুস্থদের মাঝে ত্রাণ সামগ্রী বিতরণ করেছে। গতকাল রবিবার সকাল ১০টা থেকে দুপুর ২টা পর্যন্ত উপজেলার সীমান্ত সংলগ্ন প্রাগপুর, বিলগাথুয়া, চাইডোবা, জয়পুর, মহিষকুন্ডি, জামালপুর, ধর্মদহ ও আশ্রয়ন বিওপি সংলগ্ন কপোতনগর সরকারী প্রাথমিক বিদ্যালয় মাঠে ত্রাণ সামগ্রী বিতরণ করা হয়। ত্রাণ সামগ্রী বিতরণকালে উপস্থিত ছিলেন, কুষ্টিয়া সেক্টর কমান্ডার কর্ণেল জিয়া সাদাত খান, ৪৭ বিজিবি ব্যাটালিয়নের অধনায়ক লে. কর্ণেল রফিকুল আলম পিএসসি ও ৪৭ বিজিবি ব্যাটালিয়নের উপ-অধিনায়ক মেজর আবু বিন ফয়সাল। এসময় ৪৭ বিজিবি ব্যাটালিয়ন অধিনস্থ বিভিন্ন কোম্পানী কমান্ডার ও বিওপি কমান্ডারগণ সাথে ছিলেন। বিদ্যানন্দ ফাউন্ডেশন থেকে ৫৪০ প্যাকেট খাদ্য সামগ্রী সীমান্ত এলাকায় বসবাসরত দুঃস্থ, অসহায় ও হতদরিদ্র পরিবারের মাঝে বিতরণ বিজিবি’র পক্ষ থেকে বিতরণ করা হয়।

দেশে এক দিনে ১৪ মৃত্যু, রেকর্ড ৮৮৭ রোগী শনাক্ত

ঢাকা অফিস ॥ দেশে এক দিনে রেকর্ড ৮৮৭ জনের মধ্যে নতুন করোনাভাইরাসের সংক্রমণ ধরা পড়ায় মোট আক্রান্তের সংখ্যা বেড়ে হয়েছে ১৪ হাজার ৬৫৭ জন। গতকাল রোববার সকাল ৮টা পর্যন্ত ২৪ ঘণ্টায় মারা গেছেন আরও ১৪ জন। এ নিয়ে মৃত্যুর সংখ্যা বেড়ে ২২৮ জন হল। সারা দেশে বিভিন্ন হাসপাতালে ভর্তি রোগীদের মধ্যে গত ২৪ ঘণ্টায় সুস্থ হয়েছেন ২৩৬ জন, এ নিয়ে মোট ২ হাজার ৬৫০ জন সুস্থ হলেন। স্বাস্থ্য অধিদপ্তরের নিয়মিত বুলেটিনে যুক্ত হয়ে অতিরিক্ত মহাপরিচালক অধ্যাপক নাসিমা সুলতানা গতকাল রোববার দেশে করোনাভাইরাস পরিস্থিতির এই সবশেষ তথ্য তুলে ধরেন। তিনি জানান, গত এক দিনে যে ১৪ জনের মৃত্যু হয়েছে, তাদের মধ্যে ১০ জন পুরুষ ও ৪ জন নারী। নারীদের মধ্যে একজনের বয়স ছিল ৩০ থেকে ৪০ বছরের মধ্যে, একজনের ছিল ৫১ থেকে ৬০ বছরের মধ্যে; আর ৬১-৭০ বছর বয়সী ছিলেন দুই জন। আর পুরুষদের মধ্যে ৪১ থেকে ৫০ বছরের মধ্যে চারজন, ৫১ থেকে ৬০ বছরের মধ্যে দুই জন, ৬১ থেকে ৭০ বছরের মধ্যে তিন জন এবং একজনের বয়স ছিল ৯১ থেকে ১০০ বছরের মধ্যে। গত ২৪ ঘণ্টায় সারা দেশে আইসোলেশনে নেওয়া হয়েছে ১৬৯ জনকে, বর্তমানে আইসোলেশনে আছেন ২ হাজার ১১৫ জন। সারা দেশে মোট ৩৬টি ল্যাবে গত এক দিনে ৫ হাজার ৭৩৮টি নমুনা পরীক্ষা করা হয়েছে বলে বুলেটিনে জানানো হয়।

আদালতে ভার্চুয়াল শুনানি 

হাইকোর্টে তিনটি বেঞ্চ গঠন

ঢাকা অফিস ॥ করোনাভাইরাসের কারণে সৃষ্ট পরিস্থিতিতে ভার্চুয়াল (অনলাইনে) পদ্ধতিতে আদালত পরিচালনার সিদ্ধান্ত গ্রহণ করেছেন দেশের সর্বোচ্চ আদালত সুপ্রিম কোর্টের হাইকোর্ট বিভাগ। আর সেই লক্ষ্যে মামলার শুনানির জন্য হাইকোর্টে তিনটি পৃথক বেঞ্চ গঠন করা হয়েছে। এর মধ্যে একটি বেঞ্চ আপিল শুনানির জন্য নির্ধারণ করা হয়েছে। গতকাল রোববার প্রধান বিচারপতি সৈয়দ মাহমুদ হোসেনের নেতৃত্বে ফুল কোর্ট সভায় এ সিদ্ধান্ত গ্রহণ করা হয়। ফুল কোর্ট সভায় আপিল বিভাগ ও হাইকোর্ট বিভাগের বিচারপতিরা অংশ নেন। হাইকোর্টের নতুন গঠিত বেঞ্চগুলো হলো- বিচারপতি ওবায়দুল হাসানেরে নেতৃত্বে থাকবে একটি বেঞ্চ। যেখানে অতি জরুরি সকল প্রকার রিট ও দেওয়ানি মোশন এবং এ-সংক্রান্ত আবেদনপত্র গ্রহণ করা হবে। আরেকটি বেঞ্চের নেতৃত্বে থাকবেন বিচারপতি জাহাঙ্গীর হোসেন। যেখানে অতি জরুরি সকল প্রকার ফৌজদারি মোশন ও এ-সংক্রান্ত জামিনের আবেদনপত্র গ্রহণ করা হবে। বিচারপতি মুহাম্মদ খুরশীদ আলম সরকারের নেতৃত্বে একটি বেঞ্চে অন্যান্য মামলার শুনানির জন্য নির্ধারণ করবেন। এর আগে, গত ৯ মে আদালতে তথ্য-প্রযুক্তি ব্যবহার অধ্যাদেশ- ২০২০ এর গেজেট প্রকাশ করে সরকার। এতে মামলার বিচার, বিচারিক অনুসন্ধান, দরখাস্ত বা আপিল শুনানি, সাক্ষ্য গ্রহণ, যুক্তিতর্ক গ্রহণ, আদেশ বা রায় প্রদানকালে বিভিন্ন পক্ষের ভার্চুয়াল উপস্থিতি নিশ্চিত করার উদ্দেশে আদালতকে তথ্য-প্রযুক্তি ব্যবহারের ক্ষমতা প্রদান করা হয়।