কুষ্টিয়ায় সেভ লাইফ’র উদ্যোগে দরিদ্র মানুষের মধ্যে খাদ্যসামগ্রী বিতরণ

নিজ সংবাদ ॥ গতকাল রবিবার সকাল ১০ টা থেকে কুষ্টিয়া সেভ লাইফ’র উদ্যোগে দুঃস্থ ও দরিদ্র্য মানুষের মধ্যে খাদ্যসামগ্রী বিতরণ করা হয়। অনুষ্ঠানটি সার্বিক সহযোগিতা করেন সেভ লাইফ’র- মোকাদ্দেস হোসেন, রিংকু কর্মকার, রাজীব সাহা, সঞ্জয় আগরওয়ালা, রাজীব কুন্ডু, প্রশান্ত— দাস (টুম্পা), খুরশিদ আহমেদ, মহিবুল আলম, উত্তম কর্মকার, পরিতোষ দাস, ইমরান হোসেন মেরিন, মোঃ রফিকুল ইসলাম, মিলন হোসেন, আনিছুর রহমান সহ আরো অন্যান্য সদস্যবৃন্দরা উপস্থিত ছিলেন। উল্লেখ্য যে, সেভ লাইফ’র সভাপতি কুষ্টিয়া চেম্বার অব কমার্সের সাবেক পরিচালক ও বিশিষ্ট শিশু সংগঠক আশরাফ উদ্দিন নজু এবং সেভ লাইফ’র সাধারণ সম্পাদক ব্যারিস্টার গৌরব চাকী।

ঝিনাইদহ স্বপ্ন সিড়ি সমাজ কল্যান সংস্থার উদ্যোগে খাদ্য সামগ্রী বিতরণ

ঝিনাইদহ প্রতিনিধি ॥ ঝিনাইদহ পার্কপাড়া এলাকার স্বপ্ন সিড়ি সমাজ কল্যান সংস্থার উদ্যোগে ও বাংলাদেশ মানবাধিকার নাট্য পরিষদ জেলা শাখার সহযোগিতায় করোনার প্রভাবে কর্মহীন হয়ে পড়া নিম্নআয়ের খেটে খাওয়া মানুষের মাঝে খাদ্য সামগ্রী বিতরণ করা হয়েছে। রোববার সকালে পৌর এলাকার ৫০ জন কর্মহীন হয়ে পড়া নিম্ন আয়ের খেটে খাওয়া মানুষের মাঝে খাদ্য সামগ্রী বিতরণ করেন। এসময় বাংলাদেশ মানবাধিকার নাট্য পরিষদের সভাপতি ও স্বপ্ন সিড়ি সমাজ কল্যান সংস্থার সাধারণ সম্পাদক রুবেল পারভেজ, সহ সভাপতি নূরুজ্জামান, মেহেরুজ্জামান সবুজ ও ফয়সাল আহমেদ উপস্থিত ছিলেন। এসময় ওই এলাকার ৫০ জন খেটে খাওয়া পরিবারের মাঝে আটা, আলু, কাচা মরিচ, কাচ কলা, মিষ্টি কুমড়া, পিয়াজ ও টমেটো বিতরণ করা হয়। সামাজিক দুরত্ব বজায় রেখে তাদের মাঝে খাদ্য সামগ্রী বিতরণ করা হয়। কাজ না থাকায় অভাব অনটনে থাকা পরিবারগুলো এই খাবার পেয়ে সন্তুষ্টি প্রকাশ করেন।

করোনাভাইরাস

অর্থনীতিতে প্রভাব কতটা, ধারণা দিলেন প্রধানমন্ত্রী

ঢাকা অফিস ॥ নভেল করোনাভাইরাস মহামারীতে দেশের অর্থনীতির ওপর সম্ভাব্য যেসব বিরূপ প্রভাব পড়ছে, তার একটি খতিয়ান প্রধানমন্ত্রী তুলে ধরেছেন। তিনি বলেছেন, ভাইরাসের বিস্তার ঠেকাতে লক-ডাউনের ফলে স্বল্পআয়ের মানুষ যেমন সঙ্কটে পড়েছে, তেমনি সরকারের রাজস্ব সংগ্রহ ও জিডিপি প্রবৃদ্ধির লক্ষ্যমাত্রাও হুমকির মুখে পড়েছে। এই সঙ্কট থেকে উত্তরণের লক্ষ্যে রোববার সকালে গণভবন থেকে এক ব্রিফিংয়ে প্রধানমন্ত্রী শিল্প-বাণিজ্য খাতের জন্য ৭২ হাজার ৭৫০ কোটি টাকার প্রণোদনা প্যাকেজ ঘোষণা করেছেন। সেই সঙ্গে সামাজিক সুরক্ষা কার্যক্রমের আওতা বৃদ্ধিসহ চার ধরনের কার্যক্রম হাতে নেওয়ার কথা বলেছেন। এসব কার্যক্রম দ্রুত বাস্তবায়িত হলে দেশে অর্থনীতি ঘুরে দাঁড়াবে এবং বাংলাদেশ কাক্সিক্ষত অর্থনৈতিক প্রবৃদ্ধির কাছাকাছি পৌঁছতে পারবে বলে আশা প্রকাশ করেছেন তিনি। প্রধানমন্ত্রী বলেন, করোনাভাইরাসের বিস্তার, স্বাস্থ্য পরিসেবার ওপর সৃষ্ট বিপুল চাপ এবং সংক্রমণ প্রতিরোধে নজিরবিহীন লকডাউন ও যোগাযোগ স্থবিরতা বিশ্ব অর্থনীতিতে ইতোমধ্যে ব্যাপক নেতিবাচক প্রভাব ফেলতে শুরু করেছে। শিল্প উৎপাদন, রপ্তানি বাণিজ্য, সেবাখাত বিশেষতঃ পর্যটন, এভিয়েশন ও হসপিটালিটি খাত, ক্ষুদ্র ও মাঝারি উদ্যোগ, কর্মসংস্থান ইত্যাদি ক্ষেত্রে ধস নেমেছে। শুধু সরবরাহ ক্ষেত্রেই নয়, চাহিদার ক্ষেত্রেও ভোগ ও বিনিয়োগ চাহিদা হ্রাস পেতে শুরু করেছে। গত কয়েক সপ্তাহে বিশ্বব্যাপী পুঁজি বাজারে ২৮ থেকে ৩৪ শতাংশ দরপতন ঘটেছে। আইএমএফ ইতোমধ্যে বিশ্ব অর্থনীতিতে মন্দা শুরুর আভাস দিয়েছে। আর ওইসিডি বলছে, মন্দা প্রলম্বিত হলে বিশ্বে প্রবৃদ্ধি ১.৫ শতাংশে নেমে আসতে পারে। প্রধানমন্ত্রী বলেন, “বিশ্বব্যাপী বিপুল জনগোষ্ঠী কর্মহীন হতে পারে বলে আশঙ্কা করা হচ্ছে। মন্দা দীর্ঘস্থায়ী হলে দ্বিতীয় বিশ্বযুদ্ধের পর বিশ্ব এই প্রথম এমন মহামন্দা পরিস্থিতির সম্মুখীন হতে পারে বলে আশঙ্কা করা হচ্ছে।” তিনি বলেন, করোনাভাইরাস মহামারীতে বাংলাদেশের অর্থনীতির ওপর কী ধরনের বা কতটুকু নেতিবাচক প্রভাব পড়বে, তা এখনও নির্দিষ্ট করে বলার সময় আসেনি। তারপরও কিছু কিছু ক্ষেত্রে সম্ভাব্য অর্থনৈতিক প্রভাবগুলো সংবাদ সম্মেলনে তুলে ধরেন সরকারপ্রধান। দেশে আমদানি ব্যয় ও রপ্তানি আয়ের পরিমাণ গত অর্থবছরের একই সময়ের তুলনায় প্রায় ৫ শতাংশ হ্রাস পেয়েছে। অর্থবছর শেষে এই হ্রাসের পরিমাণ আরও বাড়তে পারে বলে আশঙ্কা করা হচ্ছে। চলমান মেগা প্রকল্পসমূহ বাস্তবায়ন, অর্থনৈতিক অঞ্চল প্রতিষ্ঠা এবং ব্যাংক সুদের হার হ্রাসের পরিকল্পনা বাস্তবায়ন বিলম্বের কারণে বেসরকারি বিনিয়োগ প্রত্যাশিত মাত্রায় অর্জিত না হওয়ার সম্ভাবনা আছে। সার্ভিস সেক্টর, বিশেষ করে হোটেল-রেস্তোরাঁ, পরিবহন এবং এভিয়েশন সেক্টরের ওপর বিরূপ প্রভাব পড়বে। বিশ্বের অন্যান্য দেশের মত বাংলাদেশের শেয়ার বাজারের ওপরও বিরূপ প্রভাব পড়ছে। বিশ্বব্যাপী জ্বালানি তেলের চাহিদা কমায় এর দাম ৫০ শতাংশের বেশি হ্রাস পেয়েছে; যার বিরূপ প্রভাব পড়বে প্রবাসী-আয়ের ওপর। বাংলাদেশের অর্থনৈতিক ক্ষতির পরিমাণ ৩ দশমিক শূন্য ২ বিলিয়ন মার্কিন ডলার হতে পারে বলে এশীয় উন্নয়ন ব্যাংক প্রাক্কলন করেছে। তবে বর্তমান প্রেক্ষাপটে মনে হচ্ছে, এ ক্ষতির পরিমাণ আরও বেশি হতে পারে। দীর্ঘ ছুটি বা কার্যত লকডাউনের ফলে ক্ষুদ্র ও মাঝারি শিল্প প্রতিষ্ঠানসমূহের উৎপাদন বন্ধ এবং পরিবহন সেবা ব্যাহত হওয়ায় স্বল্প আয়ের মানুষের ক্রয় ক্ষমতা হ্রাস এবং সরবরাহ চেইনে সমস্যা হতে পারে। চলতি অর্থবছরের রাজস্ব সংগ্রহের পরিমাণ বাজেটের লক্ষ্যমাত্রার তুলনায় কম হবে। এর ফলে অর্থবছর শেষে বাজেট ঘাটতির পরিমাণ আরও বৃদ্ধি পেতে পারে। বিগত ৩ বছর ধরে ধারাবাহিকভবে ৭ শতাংশের বেশি হারে প্রবৃদ্ধি অর্জন এবং ২০১৮-১৯ অর্থবছরে ৮.১৫ শতাংশ প্রবৃদ্ধি অর্জনের প্রধান চালিকাশক্তি ছিল শক্তিশালী অভ্যন্তরীণ চাহিদা এবং সহায়ক রাজস্ব ও মুদ্রানীতি। সামষ্টিক চলকগুলোর নেতিবাচক প্রভাবের ফলে জিডিপি প্রবৃদ্ধি কমে পেতে পারে।

গাংনীতে এতিম ৪ ভাই- বোনদের বিভিন্ন সংগঠনের সহযোগিতা অব্যাহত  

গাংনী প্রতিনিধি  ॥ মেহেরপুর জেলার গাংনী উপজেলার কসবা গ্রামের ৪ এতিম শিশুর জন্য বিভিন্ন সংগঠনের সহযোগিতা অব্যাহত রয়েছে। কসবা গ্রামের মা হারা ও বাবা বিয়ে করে সংসার করার ব্যস্ত জীবনের কারণে ফেলে যাওয়া ৪ ভাই-বোনদের কষ্টের জীবন নিয়ে সামাজিক যোগাযোম মাধ্যম ও বিভিন্ন পত্রিকায় সংবাদ প্রকাশ হয়। সংবাদটি প্রকাশের পর দেশ-বিদেশের বিভিন্ন শ্রেণী-পেশার মানুষ তাদের সহযোগিতা অব্যাহত রেখেছে। নিউজ প্রকাশের পর মেহেরপুর জেলা ছাত্রলীগের নেতৃবৃন্দ রাতের আঁধারে খাদ্য সামগ্রী প্রদান করেন। এছাড়াও মেহেরপুর জেলা জাতীয় পার্টির (জাপা) সংগ্রামী সাধারণ সম্পাদক সাইফুল ইসলাম সেলিম ১ বস্তা চাউল, ৫ কেজি ডাল,আলু, তেল, সাবানসহ বিভিন্ন প্রকার খাদ্য সামগ্রী সহায়তা করেন। ব্যক্তিগত উদ্যোগে তিনি এসব প্রদান করেন। এসময় উপস্থিত ছিলেন জাতীয় পার্টির বিভিন্ন পর্যায়ে  নেতা-কর্মীবৃন্দ।  এছাড়াও ওই শিশুদের সহযোগিতা প্রদান করেন গাংনী উপজেলার হাড়িয়াদহ গ্রামের বাসিন্দা ও প্রশাসন বিভাগে কর্মরত ব্যক্তি, এক প্রবাসী ও গাংনী উপজেলা শহরের বাসিন্দা বর্তমান চট্টগ্রামের ব্যবসায়ী কাজে নিয়োজিত ব্যক্তি নেপথ্যে থেকে আর্থিকভাবে সহযোগিতা করেন। জানা যায়, কসবা গ্রামের রাশিদুল ইসলাম একই উপজেলার পীরতলা গ্রামের এক মেয়ের সাথে ১৫ বছর আগে বিয়ে করেন। বিয়ের পর তাদের সংসারে আসে ৩ ছেলে ও ১ মেয়ে। গত ৪ বছর আগে রাশিদুল ইসলামের স্ত্রী স্ট্রোক করে মারা যান। পরে রাশিদুল ইসলাম তার ছেলে ও মেয়েদের ফেলে বিয়ে করে অন্যত্রে চলে যান। নিরুপায় হয়ে ছোট ছেলে-মেয়েরা তাদের দাদার কাছে আশ্রয় গ্রহণ করে। দাদা-দাদি বৃদ্ধ হওয়ায় সংসার চালানো কষ্ট হয়ে পড়ে। স্থানীয়দের সহযোগিতায় ছোট ছেলে-মেয়েরা দাদার বাড়ির আঙ্গিনায় একটি চায়ের দোকান স্থাপন করে। এবং চা বিক্রি করে কোনো রকম সংসার চালায়। পাশাপাশি বড় ছেলে আশিক, মেজো মোস্তাকিন, সেজো কুলছুম ও ছোট ছেলে রিয়াজ স্থানীয় একটি বিদ্যালয়ে পড়া লেখা করে। করোনা ভাইরাসের কারণে অন্যন্য দোকানের পাশাপাশি তাদের চায়ের দোকান বন্ধ রয়েছে। কিন্তু দোকান বন্ধ থাকলেও পেট তো আর থেমে থাকে না। তাদের এ কষ্টের খবর প্রকাশের পর দেশ-বিদেশের অসংখ্য মানুষ সহযোগিতা অব্যাহত রেখেছে।

দৌলতপুরে অগ্নিকান্ডে ৫টি ঘর পুড়ে ছাই

দৌলতপুর প্রতিনিধি ॥ কুষ্টিয়ার দৌলতপুরে অগ্নিকান্ড ঘটে ২টি বাড়ির ৫টি ঘর পুড়ে ছাই হয়েছে। গভীর রাতে লাগা আগুন দুই পরিবারের সহায় সম্বলসহ সব পুড়ে ব্যাপক ক্ষতি হয়েছে বলে এলাকাবাসী জানিয়েছে। শনিবার দিবাগত রাত ২টার দিকে উপজেলার প্রাগপুর ইউনিয়নের পাকুড়িয়া গ্রামে মশা তাড়ানো কয়েলের আগুন থেকে অগ্নিকান্ডের সূত্রপাত হলে মঙ্গল সর্দার ও শরিফুল সর্দারের বাড়ি পুড়ে ভষ্মিভূত হয়। এলাকাবাসীর চেষ্টায় আগুন নিয়ন্ত্রন হলেও দুই বাড়ির ৫টি ঘর পুড়ে ব্যাপক ক্ষতি হয়েছে। আগুনে নগদ টাকা, আসবাবপত্র, খাদ্য-শস্যসহ দুই বাড়ির প্রায় ২০ লক্ষ টাকার সম্পদ পুড়ে ভষ্মিভূত হয়। অগ্নিকান্ডে ক্ষতিগ্রস্থরা বর্তমানে খোলা আকাশের নীচে রয়েছে। এদিকে অগ্নিকান্ডে ক্ষতিগ্রস্থ দুই পরিবারকে সরকারী ত্রাণ তহবিল থেকে ৫০ কেজি করে চাল, ৩টি করে কম্বল ও নগদ ১হাজার টাকা করে প্রদান করা হয়েছে।

করোনাভাইরাস

মৃত্যু কমছে ইতালি-স্পেনে, বাড়ছে যুক্তরাষ্ট্রে

ঢাকা অফিস ॥ মহামারী আকারে ছড়িয়ে পড়া নভেল করোনাভাইরাসে ইতালি ও স্পেনে মৃত্যু হার আগের দিনগুলোর চেয়ে কমতে দেখা গেলেও যুক্তরাষ্ট্রে তা ভয়াবহ আকার ধারণ করতে যাচ্ছে বলে আশঙ্কা করা হচ্ছে। যুক্তরাষ্ট্রের প্রেসিডেন্ট ডনাল্ড ট্রাম্প দেশবাসীকে সামনের ‘কঠিন দুই সপ্তাহের’ জন্য প্রস্তুত থাকতে বলেছেন বলে জানিয়েছে বার্তা সংস্থা রয়টার্স। “অনেক অনেক মৃত্যু হতে যাচ্ছে,” শনিবার হোয়াইট হাউসে নিয়মিত ব্রিফিংয়ে বলেন মার্কিন প্রেসিডেন্ট। সুরক্ষা উপকরণ ও চিকিৎসা সরঞ্জামের চাহিদা মেটাতে দেশটির বিভিন্ন অঙ্গরাজ্য ও হাসপাতালকে হিমশিম খেতে হচ্ছে। কেবল নিউ ইয়র্কেই আক্রান্তের সংখ্যা এক লাখ ১৪ হাজার পেরিয়ে গেছে, মৃত্যুর সংখ্যা অতিক্রম করেছে সাড়ে তিন হাজার, এ সংখ্যা ভাইরাসটি যে দেশ থেকে উদ্ভূত হয়েছে সেই চীন থেকেও বেশি। জনস হপকিন্স বিশ্ববিদ্যালয়ের তথ্য অনুযায়ী, শনিবার পর্যন্ত যুক্তরাষ্ট্রে কোভিড-১৯ এ মোট আক্রান্তের সংখ্যা তিন লাখ ১২ হাজারের বেশি; মৃত্যু ছাড়িয়েছে সাড়ে ৮ হাজার। বিশ্বের শীর্ষ অর্থনীতির দেশে মহামারী দাপিয়ে বেড়ালেও ইতালি ও স্পেনে মৃত্যুহার কমার চিহ্নে আপাত স্বস্তি মিলছে। ইতালিতে শনিবার ৬৮১ জনের মৃত্যুর খবর দিয়েছে দেশটির বেসামরিক সুরক্ষা বিভাগ। ২৩ মার্চের পর দেশটিতে একদিনে এটিই সবচেয়ে কম মৃত্যু, বলছে রয়টার্স। ইতালিতে নিবিড় পরিচর্যা কেন্দ্রে থাকা গুরুতর রোগী সংখ্যাও কমেছে বলে রয়টার্স জানিয়েছে। এদিন দেশটিতে নতুন করে করোনাভাইরাসে আক্রান্ত চার হাজার ৮০৫ জন শনাক্ত হয়েছে, সংখ্যাটি গত কয়েকদিনের তুলনায় একটু বেশি। ইউরোপের এ দেশটিতেই কোভিড-১৯ এ মৃত্যুর সংখ্যা অন্য যে কোনো দেশের চেয়ে বেশি। শনিবার পর্যন্ত ইতালিতে ১৫ হাজার ৩৬২ জনের প্রাণ কেড়ে নিয়েছে করোনাভাইরাস; আক্রান্তের সংখ্যা এক লাখ ২৪ হাজারেরও বেশি বলে জানিয়েছে জনস হপকিন্স বিশ্ববিদ্যালয়। মৃত্যু-আক্রান্তের সংখ্যা কমছে স্পেনেও। শনিবার দেশটিতে ৮০৯ জনের মৃত্যু হয়েছে। এ সংখ্যা শুক্র ও বৃহস্পতিবারের চেয়ে কম। মোট আক্রান্তের সংখ্যায় স্পেন ইতালিকে ছাড়িয়ে গেছে। দেশটির এক লাখ ২৬ হাজারের বেশি মানুষের দেহে করোনাভাইরাস ধরা পড়েছে; মৃতের সংখ্যাও ১২ হাজার ছুঁইছুঁই। পরিস্থিতি মোকাবেলায় দেশজুড়ে লকডাউনের মেয়াদ আরও তিন সপ্তাহ বাড়িয়েছেন স্পেনের প্রধানমন্ত্রী পেদ্রো সানচেজ। আক্রান্তের সংখ্যায় জার্মানির পর থাকা ফ্রান্সে মৃতের সংখ্যা সাড়ে ৭ হাজার পেরিয়ে গেছে। বিভিন্ন নার্সিং হোমগুলোতে পড়ে থাকা মৃতদেহ যোগ করায় গত কয়েকদিনে দেশটিতে মৃতের সংখ্যায় বড় ধরনের উল্লম্ফন দেখা যাচ্ছে। আক্রান্ত-মৃতের সংখ্যা বাড়ছে যুক্তরাজ্যেও। ২৪ ঘণ্টায় দেশটিতে ৭০৮ জনের মৃত্যু হয়েছে। এদের মধ্যে আগে থেকে অসুস্থ ৫ বছর বয়সী এক শিশুও আছে বলে কর্মকর্তারা জানিয়েছেন। শনিবার পর্যন্ত যুক্তরাজ্য ও এর নিয়ন্ত্রণাধীন ভূখন্ডে কোভিড-১৯ এ চার হাজার ৩২০ জনের মৃত্যু হয়েছে বলে জানিয়েছে জনস হপকিন্স বিশ্ববিদ্যালয়। ডিসেম্বরের শেষদিকে চীনের হুবেই প্রদেশের উহান শহর থেকে ভাইরাসটি বিশ্বব্যাপী ছড়িয়ে পড়লেও গত কিছুদিন ধরে দেশটিতে আক্রান্তের সংখ্যা অনেকখানি কমে এসেছিল। শনিবার দেশটি করোনাভাইরাসে মৃতদের স্মরণে রাষ্ট্রীয় শোক পালন করেছে। সাম্প্রতিক দিনগুলোতে চীনে যে আক্রান্তদের পাওয়া যাচ্ছে, তাদের বেশিরভাগই হয় বিদেশফেরত, নয়তো তাদের মাধ্যমে সংক্রমিত হচ্ছেন বলে দেশটির কর্মকর্তারা জানিয়েছেন। শনিবারও দেশটিতে নতুন ৩০ জন শনাক্ত হয়েছে; আগের কয়েকদিনের তুলনায় এ সংখ্যা বেশি। এশিয়ার অন্যতম করোনাভাইরাস আক্রান্ত দেশ ইরানে আক্রান্তের সংখ্যা ৫৫ হাজার ৭৪৩ জনে দাঁড়িয়েছে, তিন হাজার ৪৫২ মৃত্যু নিয়ে মৃতের সংখ্যায় চীনকে ছাড়িয়েছে দেশটি; এখানে সুস্থ হওয়া রোগীর সংখ্যা ১৯ হাজার ৭৩৬ জন। ইরানের আঞ্চলিক প্রতিদ্বন্দ্বী দেশ সৌদি আরবে আক্রান্তের সংখ্যা দুই হাজার ৩৭০ জন, মৃতের সংখ্যা ২৯ এবং সুস্থ হওয়ার রোগীর সংখ্যা ৪২০। ইসরায়েল আক্রান্তের সংখ্যা আট হাজার ১৮ জন, মৃতের সংখ্যা ৪৬ জন ও সুস্থ হওয়া রোগীর সংখ্যা ৪৭৭ জন। দক্ষিণপূর্ব এশিয়ার অনেক দেশেও করোনা ভাইরাস তার ভয়াল থাবা নিয়ে হাজির হয়েছে। আক্রান্ত-মৃত্যু বাড়ছে মালয়েশিয়া, থাইল্যান্ড, ইন্দোনেশিয়ায়। এদের মধ্যে মালয়েশিয়ায় আক্রান্তের সংখ্যা তিন হাজার ৪৮৩ জন ও সুস্থ হয়েছেন ৯১৫ জন। ভারতে আক্রান্তের সংখ্যা সাড়ে ৩ হাজারের কাছাকাছি পৌঁছে যাওয়ার পর দেশটি লকডাউনের মেয়াদ বাড়ানোর কথা ভাবছে বলে কর্মকর্তারা জানিয়েছেন। রোববার সকাল পর্যন্ত ভারতে ৭৭ জনের মৃত্যু হয়েছে বলে জানিয়েছে আনন্দবাজার। পাকিস্তানেও এখন পর্যন্ত দুই হাজার ৮১৬ জনের দেহে করোনাভাইরাস শনাক্তের তথ্য দিয়েছে ডন; দেশটিতে কোভিড-১৯ এ মৃতের সংখ্যা দাঁড়িয়েছে ৪৪ জনে।

কুমারখালি পূজা উদযাপন পরিষদের উদ্যোগে খাদ্য সামগ্রী বিতরণ

নিজ সংবাদ ॥ কুমারখালি পূজা উদযাপন পরিষদের উদ্যোগে করোনা ভাইরাসের সংক্রমণ রুখতে ঘরে আটকে পরা অসহায় মানুষের মাঝে খাদ্য সামগ্রী, জীবানুনাশক ছিটানো এবং প্রয়োজনীয় ঔষধ সরবরাহ করা হয়েছে। গত ২ এপ্রিল থেকে এ কার্যক্রম চলমান রয়েছে। কুমারখালি পূজা উদযাপন পরিষদের উদ্যোগে এ সব সামগ্রী বিতরণ করেন কুমারখালি পৌর মেয়র সামসুজ্জামান অরুন, কুষ্টিয়া জেলা পূজা উদযাপন পরিষদের ভারপ্রাপ্ত সাধারণ সম্পাদক এ্যাডঃ জয়দেব বিশ্বাস, কুমারখালি পূজা উদযাপন পরিষদের সভাপতি নব কুমার দত্ত, সাধারণ সম্পাদক এ্যাডঃ শংকর মজুমদার, যুগ্ম-সাধারণ সম্পাদক শিশির কুমার বিশ্বাস, ডাঃ অরুন বিশ্বাস সহ অন্যান্য নেতৃবৃন্দ।

 

ভিক্ষুক থেকে শিল্পপতি সবাই আছেন প্রধানমন্ত্রীর প্যাকেজে – তথ্যমন্ত্রী

ঢাকা অফিস ॥ প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার ঘোষিত অর্থনৈতিক প্যাকেজকে যুগান্তকারী উল্লেখ করে তথ্যমন্ত্রী ড. হাছান মাহমুদ বলেছেন, সকল বিষয় বিবেচনায় নিয়ে বাংলাদেশের সকল মানুষ- ভিক্ষুক থেকে শুরু করে শিল্পপতি সবাইকে এই প্যাকেজের সহায়তার আওতায় এনে প্রধানমন্ত্রী যে ঘোষণা দিয়েছেন তা সর্বমহল কর্তৃক অভিনন্দিত হয়েছে। তিনি গতকাল তার সরকারি বাসভবনে ভিডিও কনফরেন্সে এসব কথা বলেন। ড. হাছান বলেন, ‘আমরা দৃঢ়ভাবে বিশ্বাস করি বঙ্গবন্ধু কন্যা প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার ঘোষিত এ প্যাকেজের সঠিক বাস্তবায়নের মাধ্যমে বাংলাদেশ যেভাবে অর্থনৈতিক প্রবৃদ্ধি অর্জনে পৃথিবীর সামনে উদাহরন সৃষ্টি করেছে, সেভাবে করোনা ভাইরাস মোকাবেলায়ও পৃথিবীর সামনে উদাহরণ সৃষ্টি করতে পারবে।” তিনি বলেন, প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা মানুষের জীবিকাকেও রক্ষা করার জন্য আজ যে ঐতিহাসিক এবং সাহসী ঘোষণা দিয়েছেন- এটি আমাদের আশপাশের দেশ এমনকি ভারতের তুলনায় অনেক বড় প্যাকেজ। ভারতে তারা তাদের জিডিপির ০.৮ শতাংশ অর্থনৈতিক প্যাকেজ ঘোষণা করেছেন। আর বাংলাদেশে প্রধানমন্ত্রী ঘোষণা করেছেন মোট জিডিপির ২.৫২ শতাংশ। যা ভারতের তুলনায় অনেক বড় প্যাকেজ। আওয়ামী লীগ যুগ্ম সাধারণ সম্পাদক ড. হাছান বলেন, প্রধানমন্ত্রী যে প্যাকেজ ঘোষণা করেছেন সেটি হচ্ছে ৮.৬৬ বিলিয়ন মার্কিন ডলার।

খাদ্য সহায়তা বিতরণে সম্রাটের ভিন্ন কৌশল

নিজ সংবাদ ॥ দেশব্যাপী করোনা ভাইরাসের সংক্রামক ঠেকাতে সরকার  থেকে সবাইকে বাড়ি থাকার নির্দেশনা দেওয়া হয়েছে। পুরো দেশ স্তব্ধ করে দেয়ার ফলে দেশের নিম্ন ও মধ্যম আয়ের মানুষেরা কিছুটা বিপাকে। সরকার থেকে পর্যাপ্ত খাদ্য ও প্রয়োজনীয় ত্রাণ সামগ্রী বরাদ্দ পেয়েছে জনগণ।  সেইসাথে সমাজের  উচ্চবিত্ত দানশীল ব্যক্তিরাও এগিয়ে এসেছেন দেশের এই সংকটে। রাজনৈতিক নেতাসহ বেশ কিছু  স্বেচ্ছাসেবী সংগঠনগুলোও তাদের নিজ অবস্থান থেকে কাজ করে যাচ্ছেন। এতোকিছুর পরেও সমাজের এক শ্রেণীর মানুষেরা অসহায় রয়েছে। আর তারা হলো মধ্যম আয়ের মধ্যবিত্ত পরিবারগুলো। আমরা সকলেই জানি সমাজের মধ্যবিত্ব পরিবারগুলো চক্ষু লজ্জায় বা সম্মানের ভয়ে রাস্তায় দাঁড়িয়ে কারো কাছে পাততে পারেনা। নিরবে শুধু সয়ে যায়।

আর এই মধ্যম আয়ের মানুষের কথা ভেবেই বিকল্প পথে ত্রাণ-সাহায্য করার পদ্ধতি অবলম্বন করেন জেড,এম,সম্রাট। কুষ্টিয়া শহর যুবলীগের সাবেক যুগ্ম আহবায়ক জেড,এম,সম্রাট এর আগেও সমাজের অনেক গুরুত্বপূর্ণ কাজে ভূমিকা রেখেছিলেন। গত ৩ এপ্রিল সম্রাট তার ব্যক্তিগত  ফেসবুক একাউন্টে একটি বার্তা প্রকাশ করেন। এতে লেখা ছিলো “ কুষ্টিয়া শহর ১নং ওয়ার্ড ও মজমপুর গেট এলাকার কোনো পরিবার যদি অনাহারে থাকেন কিন্তু সামাজিক অবস্থান এর কারনে কারো থেকে কিছু চাইতে পারছেন আমাকে ০১৭১১-৩৯৩৭** নাম্বারে যোগাযোগ করুন। আমি জেড,এম,সম্রাট কথা দিলাম। ইনশাআল্লাহ গোপনীয়ভাবে প্রয়োজনীয় ব্যবস্থা গ্রহণ করবো। উল্লেখ্য, সায়াদ রাইচ এজেন্সির  প্রোপাইটার জেড,এম,সম্রাট এবং তার মা কুষ্টিয়া পৌর সংরক্ষিত ১, ২ ও ৩ এর মহিলা কাউন্সিলর শাহানাজ সুলতানা বনি।

কুমারখালীতে বিনা প্রয়োজনে বাইরে দেখলেই কঠোর আইনানুগ ব্যবস্থা

কুমারখালী প্রতিনিধি ॥ করোনা ভাইরাসের সংক্রমণ প্রতিরোধে কুমারখালীতে সরকারি নির্দেশনা অমান্য করে বিনা প্রয়োজনে বাইরে ঘোরাঘুরি করতে দেখা গেলেই এখন থেকে কঠোর আইনানুগ ব্যবস্থা গ্রহণ করা হবে। এরই ধারাবাহিকতায় গতকাল রবিবার সকাল থেকে উপজেলার বিভিন্ন এলাকায় অভিযান ও মোবাইল কোর্ট পরিচালনা করা হয়েছে। উপজেলা নির্বাহী অফিসার রাজীবুল ইসলাম খান ও সহকারি কশিনার (ভূমি) এম, এ মুহাইমিন আল জিহান পৃথক পৃথক এলাকায় মোবাইল কোর্ট পরিচালনা করেন। এ সময় আইন-শৃংখলা বাহিনীর সদস্যরা উপস্থিত ছিলেন। উপজেলা নির্বাহী অফিসার রাজীবুল ইসলাম খান জানান, পৌরসভা এলাকায় মোবাইল কোর্ট পরিচালনা করাকালীন সময়ে বিনা প্রয়োজনে বাইরে ঘোরাঘুরি, একের অধিকজন একত্রে জমায়েত হওয়া, দোকানে বসে আড্ডা দেওয়া, মোটর সাইকেলে অধিক সংখ্যক যাত্রী আরোহন ও সামাজিক দুরত্ব বজায় না রাখার দায়ে ১৩টি মামলায় ২ হাজার ৬৫০টাকা জরিমানা আদায়সহ একজনকে ৭ দিনের কারাদন্ড দেওয়া করা হয়েছে। অন্যদিকে, সহকারি কমিশনার (ভূমি) এম, এ মুহাইমিন আল জিহান  পৌরসভা এলাকা, জগন্নাথপুর ও সদকী ইউনিয়ন পরিষদ এলাকায় মোবাইল কোর্ট পরিচালনা করেছেন। তিনি ১০টি মামলায় দন্ডবিধির ২৬৯ ধারায় ৩ হাজার ২৫০ টাকা জরিমানা আদায় করেন। এ সময় তিনি বাজার ঘাটে গণজমায়েত, চায়ের দোকানে টেলিভিশন দেখা, বেঞ্চ বসে আড্ডা দেওয়া, মোটর সাইকেটে অতিরিক্ত যাত্রী আরোহন ও সামাজিক দুরস্ত বজায় না রাখায় কঠোরভাবে সতর্ক করে বলেন, বিনা প্রয়োজনে কাউকে বাইরে ঘোরাঘুরি করতে দেখা গেলেই এখন থেকে কঠোর আইনানুগ ব্যবস্থা গ্রহণ করা হবে।

কুষ্টিয়া জেলা প্রশাসকের হাতে অমি-রনি ট্রান্সপোর্টের চেক বিতরণ

নিজ সংবাদ ॥ আওয়ামীলীগের সভানেত্রী প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার আহব্বানে ও আওয়ামীলীগের যুগ্ম-সাধারণ সম্পাদক কুষ্টিয়া উন্নয়নের রুপকার জননেতা মাহবুবউল আলম হানিফ এমপির নির্দেশনা অনুযায়ী কুষ্টিয়ায় অমি-রনি ট্রান্সপোর্টের মালিক (স্বত্বাধিকারী) আব্দুল জলিল এর পক্ষে বিশিষ্ট ব্যবসায়ী জীবন আহমেদ অমি গতকাল রবিবার সকাল ১১টায় জেলা প্রশাসক মোঃ আসলাম হোসেনের হাতে চেক প্রদান করেন।  করোনা ভাইরাসের প্রভাবে সারা বিশ্বে চলছে দুঃসময়। উন্নত  দেশগুলো যেখানে এই অচলাবস্থা মোকাবেলায় হিমশিম খাচ্ছে সেখানে বাংলাদেশের দিন এনে দিন খাওয়া মানুষগুলোর অবস্থা ভাবা যাচ্ছেনা। সারাদেশে অচলাবস্থা বিরাজ করায় কাজে বের হতে পারছেনা দিনমজুরেরা। কাজের অভাবে ঘরে বসে না খেয়ে থাকতে হচ্ছে পুরো পরিবার নিয়ে৷ দেশের এমন বৈশ্বিক এই বিপর্যয়ের কঠিন পরিস্থিতিতে বর্তমান দেশব্যাপি করোনা ভাইরাসের ভয়াল আক্রমণে কর্মজীবী মানুষ হঠাৎ কর্মহীন হয়ে পড়ার কারনে প্রধানমন্ত্রী  জননেত্রী শেখ হাসিনা  দেশের বিত্তবানদের সাহায্য করার আহব্বান করেন। এদিকে কুষ্টিয়া উন্নয়নের রুপকার জননেতা মাহবুবউল আলম হানিফ এমপির নির্দেশে কুষ্টিয়ার বড় বড় ব্যবসায়ী প্রতিষ্ঠান সাহায্যর হাত বাড়িয়ে দেন। সে লক্ষ্যে হানিফ এমপির সঠিক নির্দেশনা পেয়ে অমি-রনি ট্রান্সপোর্ট জেলা প্রশাসকের হাতে চেক প্রদান করেন৷ এছাড়াও জীবন আহমেদ অমি তাদের নিজ উদ্যোগে অসহায় মানুষের বাড়িতে খাদ্য সামগ্রী পৌছে দিচ্ছেন।

কুষ্টিয়া পৌরসভার দৈনন্দিন কাজের পাশাপাশি নোবেল করোনা ভাইরাস প্রতিরোধে বিভিন্ন কার্যক্রম অব্যাহত

বিশ^ব্যাপী নোবেল করোনা ভাইরাস আজ এক মহা আতঙ্কের নাম যার ভয়াল থাবা ইতোমধ্যে কেড়ে নিয়েছে বিশে^র প্রায় ৫৪ হাজার মানুষের প্রাণ। বিশ^ স্বাস্থ্য সংস্থা ইতোমধ্যেই এটিকে বৈশি^ক মহামারী হিসেবে ঘোষনা দিয়েছে। এশিয়া, ইউরোপ, আমেরিকা সহ বিশে^র প্রায় ২০০টি দেশে ছড়িয়ে পড়েছে এই মহামারি। প্রতিদিন হাজার হাজার মানুষ মারা যাচ্ছে এ মহামারিতে, যেটি সামাল দিতে হিমশিম খাচ্ছে উন্নত দেশগুলোসহ প্রতিটি দেশ। বাংলাদেশেও এ আতঙ্ক যৌক্তিকভাবে ছড়িয়ে পড়েছে। মাননীয় প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার নির্দেশনা মোতাবেক দেশের সরকারী, বেসরকারী প্রতিষ্ঠানগুলোর পাশাপাশি ব্যক্তিগতভাবেও চলছে এ ভাইরাস প্রতিরোধে নানামুখি কাজ। বাংলাদেশের মডেল পৌরসভা হিসেবে প্রতিষ্ঠিত কুষ্টিয়া পৌরসভাও নোবেল করোনা ভাইরাস প্রতিরোধে প্রতিনিয়ত নিয়ে চলেছে নানামুখী পদক্ষেপ।  এ বিষয়ে কুষ্টিয়া পৌরসভার জননন্দিত মেয়র আনোয়ার আলী বলেন, যখন দেশব্যাপি করোনা ভাইরাস আতঙ্কে ঠিক সেই মুহুর্তে বাংলাদেশের স্বনামধন্য চিকিৎসাবিদ, সনোওয়াটার ফিল্টার এর আবিস্কারক ও কুষ্টিয়ার কৃতিসন্তান ডাঃ এ কে এম মুনির গবেষণা করে দেখেন ক্লোটেক দিয়ে  করোনা ভাইরাস ও ডেঙ্গুর জীবানু প্রতিরোধে কাজ করা সম্ভব। তখন ডাঃ এ কে এম মুনির কুষ্টিয়া পৌরবাসীকে এই রোগ প্রতিরোধে কুষ্টিয়া পৌরসভার জননন্দিত মেয়র আনোয়ার আলী সাথে এই বিষয়ে আলোচনা করেন। মেয়র আনোয়ার আলী ডাঃ মুনির এর কাছে কুষ্টিয়া পৌরসভাকে এবিষয়ে সহযোগিতা কামনা করেন। তখন থেকে কুষ্টিয়া  পৌরসভার এ কার্যক্রমে  ক্লোটেক মিশ্রনের মাত্রা ও প্রয়োগ বিধি বিষয়ে কারিগরি সহায়তা দিয়েছেন ডাঃ এ কে এম মুনির। এর পর হতে কুষ্টিয়া পৌরসভার জননন্দিত মেয়র আনোয়ার আলী নেতৃত্বে কাউন্সিলরদের সহায়তায় পৌরসভার প্রতিটি ওয়ার্ডে গত ২৩ মার্চ হতে পৌরসভার পরিস্কার-পরিচ্ছন্নতা ক্রাশ প্রোগ্রামের আওতায় ওয়ার্ডের বিভিন্ন সড়কে ৮টি ফগার মেশিন এবং ২১টি জীবানু নাশক স্প্রে মেশিনের মাধ্যমে প্রতিদিন ক্লোটেক মিশ্রিত পানি ছিটানো হচ্ছে। এছাড়াও প্রতিটি ওয়ার্ড  কাউন্সিলগন পৌরসভার সহযোগিতায় স্ব স্ব ওয়ার্ডে এই কার্যক্রম পরিচালিত করে আসছে।  মেয়র আরো বলেন, পৌরসভার ২১টি ওয়ার্ডে সকাল ৯টা হতে বিকাল ৩টা পর্যন্ত জীবানুনাশক পানি ছেটানো হচ্ছে। আবার বিকাল তিন ঘটিকা হতে ২টা গাড়ি দিয়ে প্রতিদিন পৌর এলাকার গুরুত্বপূর্ন রাস্তাসহ উপগলি, বাজার ও শহরের গুরুত্বপূর্ন স্থাপনায় ফগার মেশিন দিয়ে ফগিং করা হচ্ছে যা করানা ভাইরাসসহ ডেঙ্গু প্রতিরোধে কাজ করবে। ডাঃ এ কে এম মুনির এর এই কারিগরি সহযোগীতা জন্য পৌরপরিষদ ও পৌরবাসীর  পক্ষ থেকে মেয়র আনোয়ার আলী তাকে বিশেষভাবে ধন্যবাদ ও কৃতজ্ঞতা জানান। সংবাদ বিজ্ঞপ্তি

 

পলিথিন পরেই চিকিতসা দিচ্ছেন ব্রিটিশ ডাক্তাররা

ঢাকা অফিস ॥ মহামারীতে ছড়িয়ে পড়া করোনাভাইরাস মোকাবেলায় হিমসিম খাচ্ছে গোটা বিশ্ব। বিশ্বজুড়ে দিন দিন আক্রান্তের সংখ্যা বাড়তে থাকায় অতিরিক্ত চাপ পড়ছে চিকিৎসক-নার্সদের ওপর। নিজেদের সঠিক নিরাপত্তা না থাকা সত্ত্বেও পলিথিন দিয়ে পিপিই বানিয়েই চিকিৎসা সেবা চালিয়ে যাচ্ছেন যুক্তরাজ্যের চিকিৎসকরা। বিবিসি বাংলার এক প্রতিবেদনে বলা হয়, পারসোনাল প্রটেকটিভ ইকুইপমেন্ট (পিপিই) চাহিদার তুলনায় কম থাকায় দেশটির ডাক্তাররা পলিথিন পরেই করোনাভাইরাসে আক্রান্তদের চিকিৎসা সেবা দিচ্ছেন। দেশটিতে আইসিইউ বাড়াচ্ছে সরকার। তবে তাদের চিকিৎসা সরঞ্জামাদি কম থাকায় নিজেদের বাঁচাতেই এ উদ্যোগ। নাম না প্রকাশ করা শর্তে যুক্তরাজ্যের এক চিকিৎসক বিবিসিকে জানান, দেশটিতে খাদের কিনারায় থাকা একটি হাসপাতালের আইসিইউ কোভিড-১৯ রোগীতে পরিপূর্ণ। ওই হাসপাতালটিতে স্বাস্থ্যকর্মী, রোগীর বিছানা, সাধারণ এন্টিবায়োটিক ও ভেন্টিলেটরের অভাব আছে। প্রতিবেদনে বলা হয়েছে, ধারণা করা হচ্ছে যুক্তরাজ্যে করোনাভাইরাস ১৪-১৫ এপ্রিলের মধ্যে বড় আঘাত হানবে। বিশ্লেষকদের ভাষায় যেটাকে বলা হচ্ছে ‘পিক টাইম’। খবরে বলা হচ্ছে, যুক্তরাজ্যে ব্যক্তিগত সুরক্ষা দেয়া সরঞ্জামের অভাব প্রকট, এমনও হয়েছে যে পিপিইর অভাবে ময়লা ফেলার পলিথিন, প্লাস্টিকের অ্যাপ্রোন ও স্কিইং করার চশমা পরে কাজ চালিয়ে নিচ্ছেন তারা। যথাযথ সুরক্ষা ব্যবস্থা ছাড়াই করোনাভাইরাস আক্রান্ত হতে পারেন এমন ব্যক্তির থেকে ২০ সেন্টিমিটারের মতো দূরত্বে থেকে কাজ করছেন চিকিৎসকরা; যেখানে সাধারণ মানুষকে বলা হচ্ছে ২ মিটার হতে হবে ন্যূনতম দূরত্ব। বিবিসিকে দেয়া সাক্ষাৎকারে ওই ডাক্তার জানিয়েছেন, মারাত্মক প্রভাব পড়তে পারে তাদের জীবনে সেটা এখনই ভাবাচ্ছে। তারা এখন ভীতসন্ত্রস্ত হয়ে পড়ছেন। নিজেদের পিপিই নিজেরাই তৈরি করছেন। তিনি বলেন, এটা বাস্তব চিন্তা, নিবিড় চিকিৎসা যে সব নার্স দিচ্ছেন তাদের এটা এখনই প্রয়োজন। তারা যেখানে কাজ করছেন সেখানে ভাইরাস অ্যারোসলের মতো করে ছড়িয়ে পড়ার সম্ভাবনা রয়েছে। তাদের বলা হচ্ছে খুব সাধারণ টুপি পরতে যেটায় ছিদ্র আছে। যেটা কোনো সুরক্ষাই দিচ্ছে না। এটা প্রচ- রকমের ঝুঁকিপূর্ণ। তাই কর্মীরা বিনের ব্যাগ ও অ্যাপ্রোণ পরে কাজ চালিয়ে নিচ্ছেন। যুক্তরাজ্যের জাতীয় স্বাস্থ্যসেবা সংস্থা পহেলা এপ্রিল ১০ লাখ মাস্ক বিতরণ করেছে বলে জানিয়েছে এনএইচএস। তবে সেখানে মাথার সুরক্ষা ও গাউনের কথা বলা হয়নি। প্রতিবেদনে বলা হয়েছে, পূর্ব লন্ডনের হেলথ কেয়ার সহকারী থমাস হারভে, সেন্ট্রাল লন্ডনের প্রফেসর মোহাম্মদ সামি সৌশা, দক্ষিণের ড. হাবিব জাইদি, পশ্চিম লন্ডনের ড. আদিল এল তাইয়ার এবং লেস্টারের ড. আমজেদ এল হাওরানি মারা গেছেন।

গাংনীতে ৭ বছরের শিশুকে যৌন নির্যাতনের অভিযোগে চাচাতো ভাই আটক

গাংনী প্রতিনিধি ॥ মেহেরপুর জেলার গাংনী উপজেলার ষোলটাকা ইউনিয়নের বানিয়াপুকুর গ্রামের মন্ডলপাড়ায় ৭ বছরের এক কন্যা শিশুকে যৌন নির্যাতন করেছে তার চাচাতো ভাই ইয়াস উদ্দীন (৩৫)।  সে একই গ্রামের  নবীছুদ্দিনের ছেলে। এ ঘটনায় যৌন নির্যাতনকারী ইয়াস উদ্দীনকে আটক করেছে গাংনী থানা পুলিশ। স্থানীয়রা জানান রোববার সকাল সাড়ে ১১টার দিকে চাচাতো ভাই ইয়াস উদ্দীন শিশুটিকে পাশের দোকান থেকে একটি সিগারেট এনে দিতে বলে। শিশুটি সিগারেট নিয়ে ঘরে দিতে গেলে, ইয়াস উদ্দীন তার যৌন নির্যাতন করে। শিশুটি বাড়ি ফিরে তার মাকে জানায়। এদিকে খবর শুনে গতকাল রোববার দুপুরে যৌন নির্যাতনকারী ইয়াস উদ্দীনকে আটক করেছে গাংনী থানা পুলিশ। গাংনী থানার ওসি ওবাইদুর রহমান  জানান শিশুটি ও তার মায়ের অভিযোগ যৌন নির্যাতনকারী ইয়াস উদ্দীনকে আটক করা হয়েছে।

কেউ যেন ঢাকায় ঢুকতে বা বের হতে না পারে, আইজিপির নির্দেশ

ঢাকা অফিস ॥ নভেল করোনাভাইরাসের মহামারী নিয়ন্ত্রণে চলমান লকডাউনের মধ্যে জরুরি সেবার সঙ্গে নিয়োজিতরা ছাড়া রাজধানীকে কেন্দ্র করে মানুষের আগমন-বহির্গমন ঠেকাতে কঠোর হতে বলেছেন পুলিশের মহাপরিদর্শক (আইজি) জাবেদ পাটোয়ারি। কিছু কিছু কারখানা চালু হওয়ার খবরের মধ্য শনিবার দেশের বিভিন্ন প্রান্ত থেকে তৈরি পোশাক শ্রমিকসহ হাজার হাজার মানুষের ঢাকামুখী ঢল নামার পর ব্যাপক সমালোনার মুখে রাতেই তিনি এ নির্দেশনা দেন। পুলিশ সদর দপ্তরের সহকারি মহাপরিদর্শক (মিডিয়া) সোহেল রানা বলেন, নভেল করোনাভাইরাসের মধ্যে ঢাকার বাইরে থেকে ছুটে আসা শ্রমিকসহ সাধারণ মানুষ যেন ঢাকায় প্রবেশ করতে না পারে সে ব্যাপারে আইজিপির নির্দেশ সংশ্লিষ্ট পুলিশ কর্মকর্তাদের জানানো হয়েছে। করেনাভাইরাস পরিস্থিতি মোকাবেলায় সকলের সহযোগিতা কামনা করে পুলিশের এই কর্মকর্তা বলেন, “সকল ধরণের মুভমেন্ট বন্ধ আছে। কেউ ঢাকার বাইরে যেতে পারবেন না, ঢাকায় ঢুকতে পারবেন না। “যে যেখানে আছেন সেখানে অবস্থান করবেন, কোথাও সমবেত হতে পারবেন না। সামাজিক দূরত্ব বজায় রাখতে হবে। স্বাস্থ্য সুরক্ষা এখন সবচেয়ে বড় অগ্রাধিকার। তবে একান্ত জরুরি প্রয়োজন থাকলে তার বা তাদের বিষয়টি শিথিলযোগ্য হতে পারে বলে জানান তিনি। রৈাববার থেকে গার্মেন্টস খোলার খবরে শনিবার দিনভর আশেপাশের জেলাগুলো থেকে হাজার হাজার শ্রমিককে ঢাকার পথে দেখা যায়। করোনাভাইরাসের কারণে মানুষের সংস্পর্শ এড়িয়ে চলে ঘরে অবস্থানের নির্দেশনার মধ্যে ঢাকা-ময়মনসিংহ মহাসড়কে শত শত নারী-পুরুষের পায়ে হাঁটা মিছিল ও ফেরীতে শত শত মানুষের গাদাগাদি করে পদ্মা পার হওয়ার ছবি গণমাধ্যম ও সামাজিক যোগাযোগের মাধ্যমে ছড়িয়ে পড়লে ব্যাপক সমালোচনা হয়। দেশজুড়ে লকডাউনের সিদ্ধান্তের মধ্যে কারখানা খোলার সিদ্ধান্তের জন্য মালিকদের এবং হাজার হাজার মানুষকে দলে দলে এতোটা পথ পাড়ি দিতে দেওয়ার জন্য আইন-শৃঙ্খলা বাহিনী ও প্রশাসন সমালোচনার মুখে পড়ে। পরে রাতে ১১ এপ্রিল সরকারঘোষিত সাধারণ ছুটি পর্যন্ত গার্মেন্টস কারখানাগুলো বন্ধ রাখতে পোশাক খাতের দুই সংগঠন বিজিএমইএ ও বিকেএমইএ মালিকদের প্রতি আহ্বান জানায়।

সাধারণ ছুটি বাড়ল ১৪ এপ্রিল পর্যন্ত

ঢাকা অফিস ॥ করোনাভাইরাস প্রাদুর্ভাব মোকাবেলায় সামাজিক দূরত্ব নিশ্চিত করতে সাধারণ ছুটি ১৪ এপ্রিল পর্যন্ত বাড়ানোর সিদ্ধান্ত নিয়েছে সরকার। জনপ্রশাসন সচিব শেখ ইউসুফ হারুন রোববার দুপুরে সরকারি এ সিদ্ধান্তের কথা জানান। এর আগে সাধারণ ছুটি ছিল ৯ এপ্রিল পর্যন্ত। ১০ ও ১১ এপ্রিল শুক্র ও শনিবার থাকায় ওই দুদিনও ছুটির আওতায় ছিল দেশ। গত দুদিনে দেশে করোনা আক্রান্তের সংখ্যা বেড়ে যাওয়ায় সাধারণ ছুটি বাড়ানোর দাবি উঠেছিল বিভিন্ন ফোরামে। সরকার অবশেষে সেই পথেই হাটল। এ বিষয়ে সচিব বলেন, আগে ১১ তারিখ পর্যন্ত ছুটি ছিল। নতুন করে ১২ ও ১৩ এপ্রিল সাধারণ ছুটি ঘোষণা করা হয়েছে। ১৪ এপ্রিল আগে থেকেই নির্বাহী আদেশে ছুটি (বাংলা নববর্ষের) ছিল, সেই ছুটিও এর সঙ্গে অন্তর্ভুক্ত হবে। অর্থাৎ, নতুন করে ‘ছুটি’ বাড়ায় এখন তা বলবৎ থাকবে ১৪ এপ্রিল পর্যন্ত। জরুরি পরিষেবা বিশেষ করে বিদ্যুৎ, পানি, গ্যাস, ফায়ার সার্ভিস, পরিচ্ছন্নতা কার্যক্রম, টেলিফোন ও ইন্টারনেট ইত্যাদি ক্ষেত্রে সাধারণ ছুটির আদেশ প্রযোজ্য হবে না। কৃষিপণ্য, সার, কীটনাশক, জ্বালানি, সংবাদপত্র, খাদ্য, শিল্প পণ্য, চিকিৎসা সরঞ্জামাদি, জরুরি ও নিত্যপ্রয়োজনীয় পণ্য পরিবহন এবং কাঁচা বাজার, খাবার, ওষুধের দোকান ও হাসপাতাল এ ছুটির আওতার বাইরে থাকবে। জরুরি প্রয়োজনে অফিস খোলা রাখা যাবে জানিয়ে ছুটির আদেশে বলা হয়েছে, প্রয়োজনে ওষুধশিল্প, উৎপাদন ও রফতানিমুখী শিল্প কারখানা চালু রাখতে পারবে।

 

করোনাও রুখতে পারছেনা অবৈধ বালি উত্তোলনকারীদের

দৌলতপুরে পদ্মা নদী থেকে অবৈধভাবে বালি উত্তোলন করে ভরাট করা হচ্ছে প্রভাবশালী ব্যক্তির নিচু জমি

দৌলতপুর প্রতিনিধি ॥ করোনা ভাইরাস আতঙ্কে যখন পরিবারের সদস্যদের নিয়ে বাড়ির লোকজন ঘরে অবস্থান করছে, ঠিক তখনি বালি খেকো একটি মহল পদ্মা নদী থেকে অবৈধভাবে বালি উত্তোলন করে প্রভাবশালী ব্যক্তির নিচু জমি উচু করতে ব্যস্ত হয়ে পড়েছে।  দৌলতপুরবাসীকে করোনা ভাইরাস থেকে মুক্ত রাখতে প্রশাসনের কর্মকর্তাগণ দিনরাত যখন মাঠ দাবড়িয়ে বেড়াচ্ছেন, সুযোগ বুঝে তখন বালি খেকো মহলটি প্রশাসনের চোখকে ফাঁকি দিয়ে দিনে বালি উত্তোলন না করে রাতের আঁধারে অবৈধভাবে পদ্মা নদী থেকে বালি উত্তোলনে ব্যস্ত হয়ে পড়েছে। আর এমন অবৈধভাবে বালি উত্তোলনের ঘটনা প্রতি রাতেই ঘটছে উপজেলার মরিচা ইউনিয়নের বৈরাগীরচর এলাকায়। এলাকাবাসী সূত্রে জানাগেছে, বৈরাগীরচর বড়মসজিদ সংলগ্ন এলাকার মৃত কালু’র ছেলে সাগর (২৭) এর নেতৃত্বে একটি চক্র গত এক সপ্তাহ ধরে ভাদু শাহ্র আস্তানার নিকট পদ্মা নদী থেকে অবৈধভাবে বালি উত্তোলন করছে। আর ট্রলি ভর্তি এসব বালি একই এলাকার সফিকুল প্রমানিকের বাড়ির নীচু এলাকা ভরাট করা হচ্ছে। সফিকুল প্রামানিক ৬০ হাজার টাকায় সাগরের সাথে চুক্তির ভিত্তিতে দিনের বেলা বালি উত্তোলন না করে রাতের আঁধারে অবৈধভাবে বালি উত্তোলন করে নীচু জমি ভরাট করার কাজে ব্যস্ত রয়েছে। একইভাবে বালি উত্তোলনকারী মহলটি চুক্তি ভিত্তিক একই ইউনিয়নের বিভিন্ন এলাকার প্রভাবশালী ব্যক্তিদের বাড়ি অথবা নীচু জমি ভরাট করে যাচ্ছে বলে নাম প্রকাশ না করার শর্তে এলাকার সচেতন মহল অভিযোগ করেছেন। একইভাবে কোলদিয়াড় এলাকাতেও বালি খেকোরা পদ্মা নদী থেকে অবৈধভাবে বালি উত্তোলন করছে বলে জানাগেছে। অবৈধভাবে বালি উত্তোলনের বিষয়ে দৌলতপুর সহকারী কমিশনার (ভূমি) ও নির্বাহী ম্যাজিষ্ট্রেট মো. আজগর আলী জানান, আমার কাছে এমন অভিযোগ এসেছে। বিষয়টি খতিয়ে দেখা হবে।

 

অসহায় পরিবারের বাড়িতে খাদ্য সামগ্রী পৌছে দিলেন কুষ্টিয়া সদর উপজেলা চেয়ারম্যান আতাউর রহমান আতা

নিজ সংবাদ ॥ কুষ্টিয়া সদর উপজেলা পরিষদের চেয়ারম্যান ও শহর আওয়ামীলীগের সাধারন সম্পাদক আতাউর রহমান আতা অসহায় পরিবারের বাড়িতে বাড়িতে খাদ্য সামগ্রী পৌছে দিলেন। জানা যায়, রবিবার দিনব্যাপী সদর উপজেলার নির্বাহী ম্যাজিস্ট্রেট জুবায়ের হোসেন  চৌধুরীর সাথে সদর উপজেলার আইলচারা, বটতৈল ও জিয়ারখী ইউনিয়ন সহ শহরের ১০নং ওয়ার্ডের অসহায় দুস্থ মানুষের বাড়িতে বাড়িতে খাদ্য সামগ্রী বিতরণ করেন। করোনাভাইরাস সংক্রমণ প্রতিরোধে জনমানবশূন্য হয়ে পড়েছে কুষ্টিয়া জেলা। গণপরিবহন চলাচল ও দোকানপাট বন্ধ থাকায় কর্মহীন হয়ে পড়েছে খেটে খাওয়া সাধারণ মানুষ। কাজ বন্ধ থাকায় বেশি দুর্ভোগে পড়েছেন দিনমজুর, শ্রমিক পরিবারগুলো। রাস্তায় মানুষের চলাচল তেমন না থাকায় দুর্দিন চলছে ভ্যান ও রিক্সা চালকদের পরিবারে। দুর্ভোগের এই সময় মানবতার  ফেরিওয়ালা হয়েছেন আতাউর রহমান আতা। তিনি সাংবাদিকদের এক প্রশ্নের জবাবে বলেন, আওয়ামীলীগের যুগ্ম-সাধারণ সম্পাদক জননেতা মাহবুবউল আলম হানিফ এমপি মহোদয়ের নির্দেশনা রয়েছে এলাকার  কোন মানুষ যেনো না খেয়ে থাকে। সে লক্ষ্যে মানুষের বাড়িতে থাকা নিশ্চিত করে তাদের বাড়িতে খাদ্য সামগ্রী পৌছে দেওয়া হচ্ছে। আজ সোমবার ৮টি ইউনিয়ন এলাকায় খাদ্য সামগ্রী বিতরণ করা হবে, হাটশ হরিপুর,  আব্দালপুর, হরিনারায়ণপুর, উজানগ্রাম, ঝাউদিয়া, গোস্বামী দুর্গাপুর, মনোহরদিয়া ও পাটিকাবাড়ী।

কুষ্টিয়ায় মেডিকেল কলেজের ২৫ জন ইন্টার্নী চিকিসকের কাজে যোগদান

বাকীরা আজকালের মধ্যে যোগদান করবে

নিজ সংবাদ ॥ কুষ্টিয়া মেডিকেল কলেজের ২৫জন ইন্টার্নী চিকিৎসক গতকাল রবিবার কাজে যোগদান করেছে। বাকী ১৯ জন আজকালের মধ্যে কাজে যোগদান করবে বলে জানা গেছে। কুষ্টিয়া মেডিকেল কলেজের ৪র্থ ব্যাচের ২০১৪-২০১৫ শিক্ষাবর্ষের ৪৪জন শিক্ষার্থী কৃতকার্য হওয়ার পর ইন্টার্নী চিকিৎসক হিসেবে কুষ্টিয়া ২৫০শয্যা বিশিষ্ট হাসপাতালে যোগদান করার কথা ছিল। গত ১৪-২৫মার্চের মধ্যে কাজে যোগদানের কথা থাকলেও বর্তমান করোনা ভাইরাসের কারনে তারা কাজে যোগদান না করে সময় পার করছিল। এ বিষয়ে হাসপাতাল কর্তৃপক্ষ কয়েক দফা কাজে যোগদানের আহবান জানিয়েও তারা কোন পাত্তা দিচ্ছিল না। ফলে এই বৃহৎ হাসপাতালের চিকিৎসা সেবা মারাত্বকভাবে বিঘিœত হচ্ছিল। দেশের অধিকাংশ মেডিকেল কলেজের সর্বশেষ ইন্টানীদের কাজে যোগদানে এই সমস্যা সৃষ্টি হচ্ছিল ফলে সরকার থেকে কঠোর নির্দেশনা দেয়ার পরেও কাজ হচ্ছিল না। গত কয়েক দিন আগে ময়মনসিংহ মেডিকেল কলেজের ইন্টার্নী চিকিৎসকদের দেশের কোন প্রতিষ্ঠানে ইন্টার্নী সুযোগ না দেয়ার আহবান জানিয়ে ঐ মেডিকেল কলেজের পরিচালক সরকারের উচ্চ পর্যায়ে লিখিত জানালে অন্যদের মত কুষ্টিয়া মেডিকেল কলেজের ইন্টার্নি চিকিৎসকদের টনক নড়ে। কুষ্টিয়া ২৫০শয্যা হাসপাতালের আবাসিক চিকিৎসক ডাঃ তাপস কুমার পাল জানান- ইন্টার্নী চিকিৎসকেরা কাজে যোগদান করার আশ^াস দিয়ে গতকাল ২৫ জন কাজে যোগ দিয়েছে। বাকীরা আজকালের মধ্যে যোগদান করবে বলে জানিয়েছে।

কুষ্টিয়ায় সেনাবাহিনীর চিকিতসা ক্যাম্পে স্বাস্থ্য সেবা পেল হাজারো মানুষ

নিজ সংবাদ ॥ করোনার কারনে যাতে গ্রামের প্রান্তিক মানুষ স্বাস্থ্য সেবা বঞ্চিত না হয় সে জন্য কুষ্টিয়ার কুমারখালী উপজেলার চাপড়া ইউনিয়নের সাওতা গ্রামে চিকিৎসা ক্যাম্প করেছে সেনাবাহিনী। জাগ্রত বিশ এর সার্বিক ব্যবস্থাপনায় ৭১ ফিল্ড এ্যাম্বুলেন্স এ ক্যাম্প পরিচালনা করে। গতকাল রোববার সকাল সাড়ে ১১টায় ক্যাম্পের উদ্বোধন করেন সেনাবাহিনীর বিগ্রেডিয়ার জেনারেল মোহাম্মদ রিয়াজ রহমান। এ সময় উপস্থিত ছিলেন লে: কর্নেল আসাদ, ক্যাপ্টেন মোহাম্মদ ওলিউর রহমানসহ অন্যরা। সেনাবাহিনীর তিনজন চিকিৎসক এ ক্যাম্পে চিকিৎসা প্রদান করেন। নারী ও পুরুষ মিলিয়ে প্রায় ১ হাজার মানুষকে চিকিৎসা প্রদানের পাশাপাশি ওষুধ প্রদান করা হয়। সাধারন মানুষের স্বাস্থ্য সেবা নিশ্চিত করতে সেনাবাহিনীর উদ্যোগের প্রশংসা করেন স্থানীয়রা। এর ধরনের ক্যাম্প আরো করা হবে বলেও জানান সেনা কমকর্তারা।

পুলিশ সুপার এস এম তানভীর আরাফাত কুষ্টিয়ার ছিন্নমূল মানুষের মাঝে বিতরণ করলেন খাদ্য

নিজ সংবাদ ॥ নোভেল-১৯ করোনা ভাইরাসের প্রভাবে সারা বিশ্বে চলছে দুঃসময়। দিন যত যাচ্ছে ততই করোনা আক্রান্ত রোগীর সংখ্যা বাড়ছে। দেশ লকডাউন হওয়ায় অনেকে না খেয়ে দিন পার করছে। এদিকে কুষ্টিয়া শহরের অলি গলি ঘুরে ছিন্নমূল মানুষের হাতে রান্না করা খাবার নিজ দায়িত্বে পৌছে দিচ্ছেন কুষ্টিয়া পুলিশ সুপার এস এম তানভীর আরাফাত পিপিএম (বার)। খাবার বিতরণের সময় এমন এক দৃশ্য চোখে পড়ে সাংবাদিকদের। তিনি এক প্রশ্নের জবাবে বলেন, উন্নত দেশগুলো যেখানে এই অচলাবস্থা  মোকাবেলায় হিমশিম খাচ্ছে সেখানে বাংলাদেশের দিন এনে দিন খাওয়া মানুষগুলোর অবস্থা ভাবা যাচ্ছেনা। সারা দেশে অচলাবস্থা বিরাজ করায় কাজে  বের হতে পারছেনা দিনমজুরেরা। কাজের অভাবে ঘরে বসে না খেয়ে থাকতে হচ্ছে পুরো পরিবার নিয়ে৷  দেশের এমন বৈশ্বিক এই বিপর্যয়ের কঠিন পরিস্থিতিতে বর্তমান  দেশব্যাপি করোনা ভাইরাসের ভয়াল আক্রমণে কর্মজীবী মানুষ হঠাৎ কর্মহীন হয়ে পড়েছে। তিনি আরো বলেন কুষ্টিয়ার ছিন্নমূল মানুষও পড়েছে বিপাকে, ক্ষুধার জ্বালা সইতে পারছে না, এমন দৃশ্য দেখে তাদের মুখে খাবার তুলে দিতে এই উদ্যোগ নিয়েছি। এছাড়াও জেলা পুলিশের  উদ্যোগে অসহায় মানুষের বাড়িতে খাদ্য সামগ্রী পৌছে দেওয়া হচ্ছে।