এবার লকডাউন হচ্ছে কলকাতা

ঢাকা অফিস ॥ প্রাণঘাতী করোনাভাইরাস মহামারী আকারে ছড়িয়ে পড়ায় সোমবার (২৩ মার্চ) বিকেল ৪টা থেকে ৩১ মার্চ পর্যন্ত কলকাতার মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়ের নির্দেশে লকডাউন হয়ে যাচ্ছে কলকাতাসহ রাজ্যের সব শহর। বন্ধ করে দেওয়া হচ্ছে মেট্রো পরিষেবাও। শুধু পশ্চিমবঙ্গ নয়, ভারতের মোট ৭৫টি জায়গা লকডাউন ঘোষণা হয়েছে। গতকাল রোববার (২২ মার্চ) ভারতের কেন্দ্রীয় সরকারের মুখ্য সচিবদের সঙ্গে পরামর্শে এম সিদ্ধান্ত নেওয়া নিয়েছে রাজ্যের প্রশাসনিক ভবন নবান্ন। সোমবার বিকাল থেকেই কলকাতাসহ রাজ্যের সব পৌরশহর লকডাউনের সিদ্ধান্ত নিতে চলেছে রাজ্য সরকার। তবে এ সময় সবরকম জরুরি পরিষেবা খোলা থাকবে। এতে বলা হয়েছে, ডিজেল, কেরোসিন, খাদ্যদ্রব্য, ওষুধের দোকান, প্যাথলজি ল্যাবের মতো অত্যবশ্যকীয় পরিষেবা খোলা থাকবে। অ্যাম্বুলেন্স, হাসপাতাল, চিকিৎসা ব্যবস্থা থাকবে লকডাউনের আওতার বাইরে। প্রতিবেদনে বলা হয়েছে, পাঞ্জাব, রাজস্থান ইতিমধ্যেই লকডাউন করা হয়েছে। এ ছাড়া মহারাষ্ট্রও লকডাউনের পথে। এ দিকে দেশের ৭৫টি জেলা শহরকে লকডাউন করার প্রস্তাব দিয়েছে কেন্দ্রীয় সরকার। তবে, সব জরুরি পরিষেবা চালু থাকবে বলে জানানো হয়েছে। ভারতীয় সংবাদ মাধ্যম ইকোনোমিক টাইমসের প্রতিবেদনে বলা হয়েছে, ভারতে করোনাভাইরাস আক্রান্তের সংখ্যা ৩৪০ জনে দাঁড়িয়েছে। ভারতজুড়ে করোনাভাইরাসে ৭ জনের মৃত্যু হয়েছে। এ ছাড়া পশ্চিমবঙ্গে করোনাভাইরাসে চারজন আক্রান্ত হয়েছেন।

মেহেরপুরে করোনাভাইরাস প্রতিরোধ খিচুড়ি খাওয়ার আয়োজন করায় জরিমানা

মেহেরপুর প্রতিনিধি ॥ করোনাভাইরাস থেকে মুক্তি পেতে লোক সমাগমের মাধ্যমে খিচুড়ি খাওয়ার আয়োজন করায় মেহেরপুরের  মুজিবনগর উপজেলার মোনাখালী ইউনিয়নের শিবপুর গ্রামে ভ্রাম্যমাণ আদালতে জরিমানা করা হয়েছে। গতকাল রোববার সন্ধ্যায় ভ্রাম্যমাণ আদালত পরিচালনা করেন উপজেলা নির্বাহী অফিসার উসমান গনি। ভ্রাম্যমাণ আদালত সূত্র জানায় করোনাভাইস থেকে মুক্তির আশায় শিবপুর গ্রামের বকুল তলা মোড়ের মহল্লাবাসির পক্ষে কয়েকজন লোক সমাগম করে খিচুড়ি খাওয়ার আয়োজন করে। সরকারী আইনকে উপেক্ষা করে লোক সমাগমের মাধ্যমে খিচুড়ি খাওয়ার আয়োজন করা মারাত্বক অপরাধ। যা জনসাধারণের জন্য ঝুকিপূর্ণ। আয়োজনকারীদের কয়েকজন তাদের দোষ স্বীকার করায় ভ্রাম্যমাণ আদালতের মাধ্যমে ২ হাজার টাকা জরিমানা করা হয়।

সংবাদ সম্মেলন অনলাইনে করার উদ্যোগ তথ্যমন্ত্রীর

ঢাকা অফিস ॥ নভেল করোনাভাইরাস সংক্রমণ থেকে বাঁচতে জনাকীর্ণ সংবাদ সম্মেলন না করে অনলাইনে বা ভিডিও কনফারেন্সের মাধ্যমে তথ্য সরবরাহের উদ্যোগের কথা জানিয়েছেন তথ্যমন্ত্রী হাছান মাহমুদ। রোববার সচিবালয়ে তথ্য মন্ত্রণালয়ে সমসাময়িক বিষয়াবলী নিয়ে সাংবাদিকদের সঙ্গে মতবিনিময়কালে এক প্রশ্নের জাবাবে তিনি এ কথা বলেন। করোনাভাইরাস সংক্রমণ থেকে বাঁচতে সংবাদ সম্মেলনের বদলে অন্য কোনো পদ্ধতি নেওয়া যায় কি না প্রশ্নে তথ্যমন্ত্রী বলেন, “আজ আমাদের ইচ্ছা ছিল শুধু দুই-একজন ক্যামেরাম্যান ডেকে অনলাইনের মাধ্যমে করা যায় কি না। আমরা সেটার চেষ্টা করেছিলাম। কিন্তু ইতোমধ্যই আপনারা সকলে চলে এসেছেন, তবে ভবিষ্যতে আমরা সেভাবেই করব।” সবাইকে সতর্ক হওয়ার পরামর্শ দিয়ে তিনি বলেন, “যতটুকু পদক্ষেপ নেওয়া প্রয়োজন আমরা সেটুকুই নেব। অনলাইনে বা ভিডিওি কনফারেন্সে করব। এজন্য যদি আপনাদের সহায়তার প্রয়োজন হয় তাহলে আমরা বিএসআরএফে (সচিবালয়ে কর্মরত সংবাদিকদের সংগঠনের অফিসকক্ষ) যদি একটা ভিডিও মনিটর বসানো যায় বা কী করা যায় এ ব্যাপারে আলোচনা করে জানালে আমরা সহায়তা করব।“ নভেল করোনাভাইরাস সংক্রমণ থেকে বাঁচতে দূরত্ব বজায় রাখা, জনসমাগম না করা, হাঁচি-কাশির শিষ্টাচার মেনে চলাসহ নানা পরামর্শ যখন সরকারের পক্ষ থেকে দেওয়া হচ্ছে, তখন বিশাল কর্মীবাহিনী নিয়ে স্বাস্থ্যমন্ত্রী জাহিদ মালেকের শনিবারের সংবাদ সম্মেলন নিয়ে প্রশ্ন উঠে। তথ্য মন্ত্রণালয়ে একটি গুজব প্রতিরোধ সেল আছে এবং সচেতনতা বাড়ানোর জন্য আরও একটি সেল গঠন করা হচ্ছে জানিয়ে তথ্যমন্ত্রী বলেন, “আজ সে বিষয়ে এাটি প্রজ্ঞাপন জারি করা হবে। সেলে সকল সংস্থার পক্ষ থেকে প্রতিনিধি থাকবে। তথ্য মন্ত্রণালয়ের তত্ত্বাবধানে কাজ করবে। এই সেল করোনাভাইরাস প্রতিরোধে যে টাক্সফোর্স গঠন করা হয়েছে তাদের সাথে সমন্বয় করে কাজ করবে। প্রজ্ঞাপন জারির পর থেকেই সেল কাজ করা শুরু করবে।” বিশ্ব স্বাস্থ্য সংস্থার প্রতিনিধিকে উদ্ধৃত করে অনেক সংবাদমাধ্যম বাংলাদেশকে আংশিক বা পুরোপুরি ‘লকডাউন’ এবং জরুরি অবস্থা ঘোষণার পরামর্শের যে খবর প্রকাশ করেছে তা সঠিক নয় বলে জানিয়েছেন তথ্যমন্ত্রী। তিনি বলেন, “বিশ্ব স্বাস্থ্য সংস্থা বলেছে, তারা এ ধরনের পরামর্শ দেয়নি। ভবিষ্যতে কী করতে হতে পারে বা হতে পারে সে আশঙ্কা নিয়ে আলোচনা করেছে। কিন্তু এ মুহূর্তে সব কিছু লক ডাউন করে দেওয়ার মতো পরামর্শ তাদের পক্ষ থেকে দেওয়া হয়নি বলে তারা জানিয়েছে। “পরিস্থিতির প্রেক্ষাপটে সরকার সব ধরনের ব্যবস্থা গ্রহণ করছে। ইতোমধ্যে বহির্বিশ্বের সাথে বিমান যোগাযোগ বন্ধ করে দেওয়া হয়েছে। অন্যান্য পদক্ষেপ নেওয়া প্রয়োজন হলে নেওয়া হচ্ছে।” তথ্য মন্ত্রণালয়ের পদক্ষেপের বিষয়ে মন্ত্রী বলেন, “তথ্য মন্ত্রণালয় দায়িত্বশীল অবস্থান থেকে দেশের মিডিয়া ব্যক্তিত্ব- ব্যক্তিদের দিয়ে বিভিন্ন সচেতনতামূলক বিজ্ঞাপন তৈরি করে বিটিভির মাধ্যমে প্রচার করা হচ্ছে। অন্যান্য টিভিতেও পাঠানো হয়েছে। সেখানেও প্রচার করা হচ্ছে।” ঢাকা-১০ আসনের শনিবারের উপনির্বাচন নির্বাচনের ধারাবাহিতকা রক্ষার জন্য করা হয়েছে বলে মন্তব্য করেন তথ্যমন্ত্রী। তিনি বলেন, “ঢাকায় নির্বাচনে ভোটার উপস্থিতি খুবই নগণ্য ছিল। এটি স্বাভাবিক, আমরা সেটি ধারণা করেছিলাম। জনগণ অনেক সচেতন ও আতঙ্কিতও বটে, এ কারণে গতকালকে ভোটার উপস্থিতি কম ছিল। এছাড়া ইভিএমে সুষ্ঠুভাবে ভোট হয়, আর একজনের ভোট যে অন্যজনে দিতে পারে না সেটির প্রমাণ হচ্ছে কালকে অত্যন্ত কম সংখ্যক ভোট কাস্ট হয়েছে। যারা ভোট কেন্দ্র গেছেন তারাই কেবল ভোট দিতে পেরেছেন। সেটি আবারও ভোটের মাধ্যমে প্রমাণ হয়েছে।” দল মত পথ নির্বিশেষে ঐক্যবদ্ধভাবে দেশকে মানুষকে জাতিকে রক্ষা করার আহ্বান জানিয়ে তথ্যমন্ত্রী বলেন, “এ সময় আমি সবিনয়ে বিএনপির সকলকে অনুরোধ জানাব, সকলে ঐক্যবদ্ধভাবে জনগণের পাশে দাঁড়াবে। রাজনীতি করার সময় এটি নয়। সবাই মিলে ঐক্যবদ্ধভাবে দেশ জাতি ও মানুষের পাশে দাঁড়াই। রাজনীতি করার সময় এটি নয়।” করোনাভাইরাস আতঙ্কের মাঝে বেসরকারি টেলিভিশন এসএ টিভির ৩২ জন সংবাদকর্মীকে চাকরিচ্যুত করার বিষয়টি দৃষ্টিগোচর করলে তথ্যমন্ত্রী বলেন, “এমন সময়ে চাকরিচ্যুত করার বিষয়টি দুঃখজনক, অনভিপ্রেত। আমি আজকেই জানলাম। আরও বিস্তারিত জেনে কী করা যায় সেটি করা হবে। আমার পক্ষ থেকে যতটুকু সম্ভব ব্যবস্থা গ্রহণ করব।”

ঝিনাইদহে আরও ৬৯ জন হোম কোয়ারেন্টাইনে, পশু হাট বন্ধ

ঝিনাইদহ প্রতিনিধি ॥ ঝিনাইদহে নতুন করে আরও ৬৯ জনকে হোম কোয়ারেন্টাইনে রাখা হয়েছে। এদের মধ্যে বিদেশফেরত রয়েছে ৬৬ জন। এ নিয়ে জেলায় মোট কোয়ারেন্টাইনে রাখা হলো ৫৫৩ জনকে। অন্য দিকে হোম কোয়ারেন্টাইনের মেয়াদ শেষ হওয়ায় স্বাভাবিকভাবে চলাচল করতে বলা হয়েছে ২১৮ জনকে। করোনা ভাইরাস প্রতিরোধে এরই মধ্যে জেলার ২৭টি পশু হাট বন্ধ ঘোষণা করেছে জেলা প্রশাসন। পাশাপাশি চায়ের দোকান থেকে শুরু করে সকল দোকান-পাট থেকে টেলিভিশন অপসারণসহ গান-বাজনা বন্ধ রাখার নির্দেশনা দিয়ে মাইকিং করা হয়েছে। এ বিষয়ে ঝিনাইদহ জেলা প্রশাসক ও করোনা প্রতিরোধ কমিটির সভাপতি সরোজ কুমার নাথ জানান, সকল জনসমাগম নিষিদ্ধ করা হয়েছে। এ কারণেই আমরা চায়ের দোকানে টেলিভিশন অপসারণ, গান-বাজনা বাজানো বন্ধ ঘোষণা করা হয়েছে। তিনি আরও জানান, ২১ মাচ শনিবার দিবাগত রাতে ভ্রাম্যমাণ আদালতের মাধ্যমে বিভিন্ন দোকান থেকে বেশ কিছু টেলিভিশন অপসারণ করে মালিকদের সতর্ক করা হয়েছে, যেন দোকানে কোনো জন-সমাগম না হয়। এছাড়া পশু হাট বন্ধ করে মাইকিং করা হয়েছে।

 

বিশ্বব্যাপী করোনাভাইরাসে মৃত্যু ১১ হাজার ছাড়ালো

ঢাকা অফিস ॥ চীনের উহান শহর থেকে ছড়িয়ে পড়া প্রাণঘাতী নভেল কারোনাভাইরাসের সংক্রমণে বিশ্বব্যাপী মৃত্যুর সংখ্যা ১১ হাজার ছাড়িযেছে। শনিবার জনস হপকিন্স বিশ্ববিদ্যালয়ের সেন্টার ফর সিস্টেম সায়েন্স এন্ড ইঞ্জিনিয়ারিংয়ের (সিএসএসই) দেওয়া তথ্যানুযায়ী, ১৬৬টি দেশ ও অঞ্চলে ছড়িয়ে পড়া এ ভাইরাসটির সংক্রমণে সৃষ্ট রোগ কভিড-১৯ এ মৃতের সংখ্যা ১১ হাজার ৫৭২ এবং আক্রান্তের সংখ্যা দুই লাখ ৭৮ হাজার ৬৫৫ জনে দাঁড়িয়েছে। টানা তৃতীয় দিনের মতো চীনে স্থানীয়ভাবে ভাইরাসটিতে আক্রান্ত কাউকে পাওয়া যায়নি বলে জানিয়েছে দেশটির জাতীয় স্বাস্থ্য কমিশন (এনএইচসি), কিন্তু তারপরও শুক্রবার দেশটিতে আক্রান্তের সংখ্যা ৪১ জন বেড়েছে; বিদেশ থেকে ফেরার পর এদের সংক্রমণ শনাক্ত হয়েছে বলে এনএইচসি জানিয়েছে। এতে দেশটিতে মোট আক্রান্তের সংখ্যা ৮১ হাজার ৩০৩ জনে দাঁড়িয়েছে যাদের ৭১ হাজার ৮৫৭ জন চিকিৎসার পর রোগ মুক্ত হয়েছেন। সিএনএন জানিয়েছে, এ দিন দেশটিতে কভিড-১৯ এ আরও সাত জনের মৃত্যু হয়েছে, এতে শুক্রবার দিন শেষে চীনে রোগটিতে মৃতের মোট সংখ্যা দাড়াচ্ছে তিন হাজার ২৫৫ জনে। কভিড-১৯ এ মৃত্যুর সংখ্যায় ইতোমধ্যে চীনকে ছাড়িয়ে যাওয়া ইতালিতে একদিনে আরও ৬২৭ জনের মৃত্যু হয়েছে, যা নিয়ে দেশটিতে মোট মৃতের সংখ্যা দাঁড়িয়েছে চার হাজার ৩২ জনে। রোগটিতে কোনো দেশে একদিনে মৃত্যুর এটিই সর্বোচ্চ সংখ্যা, ব্যাপকভাবে সংক্রমণের সময়ও চীনে একদিনে মৃত্যুর সংখ্যা ১৫০ এর বেশি হয়নি। ইতালির পর আক্রান্তের সংখ্যা স্পেনে ও জার্মানিতে সবচেয়ে বেশি হলেও মৃত্যুর সংখ্যা বেশি ইরানে। দেশটিতে মৃতের সংখ্যা বেড়ে এক হাজার ৫৫৬ জন হয়েছে এবং আক্রান্তের সংখ্যা ২০ হাজার ৬১০ জনে দাঁড়িয়েছে বলে ইরানের স্বাস্থ্য মন্ত্রণালয়ের মুখপাত্র কিয়ানুশ জাহানপুর জানিয়েছেন। ইউরোপের দ্বিতীয় সর্বোচ্চ প্রাদুর্ভাব ছড়ানো দেশ স্পেনে আক্রান্তের সংখ্যা শনিবার নাগাদ ২১ হাজার ৫৭১ জনে দাঁড়িয়েছে এবং মারা গেছেন এক হাজার ৯৩ জন। দেশটি রাজধানীর মাদ্রিদ কনফারেন্স সেন্টারকে করোনাভাইরাস রোগীদের চিকিৎসার জন্য বিশাল একটি হাসপাতালে রূপান্তর করেছে বলে বার্তা সংস্থা রয়টার্স জানিয়েছে। ফ্রান্সে আক্রান্তের সংখ্যা ১২ হাজার ৬৩২ জন এবং মৃতের সংখ্যা ৪৫০ জনের দাঁড়িয়েছে। যুক্তরাষ্ট্রে আক্রান্তের সংখ্যা ১৯ হাজার ৬২৪ এবং মৃতের সংখ্যা ২৬০। যুক্তরাজ্যের আক্রান্ত ৪ হাজার ১৪ জন আর মৃতের সংখ্যা ১৭৮ জন। জার্মানিতে আক্রান্ত ১৯ হাজার ৮৪৮ আর মৃতের সংখ্যা ৭০ জন। নেদারল্যান্ডে আক্রান্ত ৩০০৩ জন, মৃত ১০৭ জন। এশিয়ার দক্ষিণ কোরিয়ায় আক্রান্ত ৮ হাজার ৬৫২ জন আর মৃত্যুর সংখ্যা ১০২। মালয়েশিয়ায় আক্রান্ত ১০৩০ জন আর মৃত্যু হয়েছে চার জনের। সৌদি আরবে এ পর্যন্ত আক্রান্ত হয়েছেন ৩৪৪ জন।

ইতালিতে আরও ৭৯৩ জনের মৃত্যু

ঢাকা অফিস ॥ নভেল করোনাভাইরাস সংক্রমণে বিপর্যস্ত ইতালিতে প্রতিদিন বাড়ছে মৃত্যুর হার, গেল ২৪ ঘণ্টায় আরও ৭৯৩ জনের মৃত্যুতে দেশটিতে এই রোগে মৃতের সংখ্যা দাঁড়িয়েছে ৪ হাজার ৮২৫ জনে। এক মাস আগে ইউরোপের এই দেশটিতে প্রাণঘাতী এই ভাইরাস সংক্রমণ শুরু হওয়ার পর প্রতিদিনই মৃত্যুর সংখ্যা বেড়েছে। এরমধ্যে বৃহস্পতিবার দেশটিতে মৃত্যু নতুন এই ভাইরাসের উৎসস্থল চীনকে ছাড়িয়ে গেছে। বার্তা সংস্থা রয়টার্স বলছে, আগের দিনের চেয়ে শনিবার মৃত্যুর হার বেড়েছে ১৯ দশমিক ৬ শতাংশ, আগের দিন দেশটিতে মারা যায় ৬২৭ জন। চীনে ব্যাপকভাবে সংক্রমণের সময় এই ভাইরাস নিয়ে যখন বিশ্বব্যাপী আতঙ্ক তৈরি হয়েছিল, তখনও দেশটিতে একদিনে মৃত্যুর সংখ্যা ১৫০ এর বেশি হয়নি। গত ২৪ ঘণ্টায় ইতালিতে নতুন করে করোনাভাইরাস সংক্রমণ ধরা পড়েছে ছয় হাজারের বেশি মানুষের, দেশটিতে আক্রান্তের সংখ্যা দাঁড়িয়েছে ৫৩ হাজার ৫৭৮ জনে। আক্রান্তের হার আগের দিনের চেয়ে ১৩ দশমিক ৯ শতাংশ বেশি বলে ইতালির বেসামরিক সুরক্ষা সংস্থা জানিয়েছে। নভেল করোনাভাইরাসে সবচেয়ে বেশি আক্রান্ত ইতালির উত্তরাঞ্চলীয় লোম্বার্ডি এলাকার অবস্থা এখনও শোচনীয়। সেখানে এই ভাইরাসে আক্রান্ত হয়েছেন ২৫ হাজার ৫১৫ জন, তাদের মধ্যে মৃত্যু হয়েছে তিন হাজার ৯৫ জনের। শনিবার নাগাদ আক্রান্তদের মধ্যে ৬ হাজার ৭২ জন পুরোপুরি সুস্থ হয়েছেন। এদিন আইসিইউতে আছেন দুই হাজার ৮৫৭ জন, যেখানে আগের দিন ছিলেন দুই হাজার ৬৫৫ জন।

মিরপুরে ২ ব্যবসায়ীকে জরিমানা

আমলা অফিস ॥ কুষ্টিয়ার মিরপুরে ভ্রাম্যমাণ আদালত অভিযান চালিয়ে দুই ব্যবসায়ীকে ১০ হাজার টাকা জরিমানা করেছে। গতকাল রোববার সন্ধ্যায় উপজেলা সহকারী কমিশনার (ভূমি) রকিবুল হাসানের নেতৃত্বে ভ্রাম্যমাণ মিরপুর বাজারে অভিযান চালিয়ে ভোক্তা অধিকার সংরক্ষণ আইন ২০০৯ এর ৫১ ধারায় মালতি স্টোরের মালিক কাজল কুমার দেবনাথকে ৫ হাজার টাকা জরিমানা করেন। এ সময়ে আইন শৃংখলা রক্ষাকারী বাহিনীর সদস্যরা উপস্থিত ছিলেন।

 

দৌলতপুরে প্রবাসীদের বাড়িতে লাল পতাকা

দৌলতপুর প্রতিনিধি ॥ কুষ্টিয়ার দৌলতপুরে প্রবাসীদের বাড়িতে বাড়িতে লাল পতাকা উড়ানো হয়েছে। সাধারণ মানুষ যাতেকরে বুঝতে পারে লাল পতাকা উড়ানো বাড়িতে বিদেশ ফেরত মানুষ বা কেউ রয়েছেন। দৌলতপুরের বিভিন্ন এলাকার বিদেশ ফেরত বাড়ি চিহ্নিত করে দৌলতপুর থানা পুলিশ লাল পতাকা উড়িয়েছেন। এতেকরে সহজেই বুঝা যাচ্ছে প্রবাসী বা বিদেশ ফেরত ব্যক্তিদের বাড়ি বা বিদেশ ফেরত ব্যক্তি হোম কোয়ারেন্টাইনে আছেন কিনা। উপজেলার মহিষকুন্ডি, ভাগজোত, প্রাগপুর, আদাবাড়িয়া, তেকালা, ধর্মদহ, শেহালা, বোয়লিয়া খলিশাকুন্ডি, বড়গাংদিয়া, দৌলতপুর ও মথুরাপুরসহ বিভিন্ন এলাকার বিদেশ ফেরত ব্যক্তিদের বাড়িতে লাল পতাকা উড়ানো বা লাগানো হয়েছে। দৌলতপুর উপজেলা নির্বাহী অফিসার শারমিন আক্তার ও দৌলতপুর সহকারী কমিশনার (ভূমি) মো. আজগর আলী শনিবার উপজেলা বিভিন্ন এলাকায় বিদেশ ফেরত ব্যক্তিদের বাড়ি বাড়ি গিয়ে তাদের সতর্ক ও সচেতন করেছেন। তারা যেন কোনভাবেই বাইরে বের না হ’ন এবং হোম কোয়ারেন্টাইনে থাকেন বা মেনে চলেন।

ঠিকাদারী প্রতিষ্ঠানের ঐকান্তিক প্রচেষ্টা

কুমারখালীর শহীদ গোলাম কিবরিয়া সেতু নির্মাণ কাজ এগিয়ে চলেছে দ্রুতগতিতে

কুমারখালী প্রতিনিধি ॥ কুষ্টিয়ার কুমারখালী উপজেলার সাথে গড়াই নদীর অপর পাড়ের ৫টি ইউনিয়নের প্রায় দেড় লাখ মানুষের প্রাণের দাবি ছিলো কুমারখালীর সাথে গড়াই নদীর অপর প্রান্ত যদুবয়রার সাথে সংযোগ শহীদ গোলাম কিবরিয়া সেতু নির্মাণ। বিগত সময়ে অনেক আশ্বাস আর প্রতিশ্র“তি মিললেও সেতু নির্মানের উদ্যোগ কেউ নেইনি। ফলে এই পাঁচটি ইউনিয়নের দেড় লাখ মানুষের উপজেলা সদরের সাথে  যোগাযোগ করতে হতো প্রায় ৪০ থেকে ৪৫ কিলোমিটার ঘুরে। ব্যবসা বাণিজ্য, জরুরী হাসপাতালে চিকিৎসা সেবা নেওয়া, ফায়ার সার্ভিস সেবা  থেকে বঞ্চিত ছিলো এই অঞ্চলের মানুষ। বর্তমান সরকার ক্ষমতায় আসার পর কুষ্টিয়া-৪ আসনের বর্তমান সংসদ সদস্য ব্যারিস্টার সেলিম আলতাফ জর্জ’র অগ্রণী ভূমিকার কারণে নির্মান কাজ শুরু হয়েছে শহীদ  গোলাম কিবরিয়া সেতু নির্মাণ কাজ। এর ধারাবাহিকতায় ২০১৯ সালের ১৬ সেপ্টেম্বর বাংলাদেশ আওয়ামীলীগের যুগ্ম সাধারণ সম্পাদক মাহবুবউল আলম হানিফ শহীদ গোলাম কিবরিয়া সেতুর নির্মাণ কাজের আনুষ্ঠানিক উদ্বোধন করেন। ৬৫০ মিটার সেতু এবং সেতুর উভয়পাশে ৮০০ মিটার এ্যাপ্রোচ সড়ক নির্মানে ব্যয় ধরা হয় ৮৯ কোটি ৯১ হাজার ৩৫ হাজার ৫৩১ টাকা। যার কাজ শেষ হওয়ার কথা ২০২১ সালের ২৫ অক্টোবর। তবে প্রকল্প এলাকা ঘুরে দেখা গেছে দ্রুত গতিতে নির্মাণ কাজ এগিয়ে যাচ্ছে। ইতিমধ্যে প্রায় ২০ ভাগ কাজ শেষ হয়েছে। সেতু এলাকায় চলছে দ্রুত সময়ে কাজ শেষ করার কর্মযজ্ঞ।

ঠিকাদারী প্রতিষ্ঠান নেশনটেক কমিউনিকেশন লিমিটেড ও রানা বিল্ডার্স  যৌথভাবে বর্তমানে দিন-রাত দুই শিফটে সেতুটির নির্মাণ কাজ করছে  বেশ  জোরেসোরেই। গত বছর ১৭ এপ্রিল কাজের ওয়ার্ক অর্ডার পেয়ে ঠিকাদারি প্রতিষ্ঠান ইতিমধ্যেই ১০টি পাইলিংয়ের কাজও সমাপ্ত করেছে। আগামী ২০২১ সালের ২৫ অক্টোবর সেতুটির নির্মাণ কাজ সমাপ্তির কথা রয়েছে। এদিকে সেতুর নাম সাবেক সংসদ সদস্য, বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবরের ঘনিষ্ঠ সহচর, “শহীদ গোলাম কিবরিয়া সেতু“ করার দাবী উঠে আসছে শুরু থেকেই। আপামর জনগন এই নামকরণ যথাযথ সঠিক হয়েছে বলে মনে করেন।  গড়াই নদীর উপর এই সেতুটি নির্মাণ হলে কুমারখালী উপজেলার সাথে নদীর অপর পাড়ের ৫ টি ইউনিয়নের মানুষের দীর্ঘদিনের ভোগান্তি লাঘবের পাশাপাশি ঝিনাইদহ, মাগুরার দূরত্ব অনেকাংশে লাঘব হবে। কুমারখালী পৌরসভার মেয়র সামছুজ্জামান অরুন বলেন, অনেক রাজনৈতিক নেতা ভোট নেওয়ার জন্য অনেকবার এই সেতু নিয়ে মানুষের সাথে মসকরা করেছে। কিন্তু বঙ্গবন্ধু কন্যা ক্ষমতায় আসায় সাধারণ মানুষের কল্যাণে কাজ করছেন তার অন্যতম দৃষ্টান্ত গড়াই নদীর উপর এই সেতু নির্মান। সেতুটি এই অঞ্চলের মানুষের প্রাণের দাবি ছিলো সেটি আজ দৃশ্যমান হচ্ছে। এই নির্মানের ফলে এই এলাকার মানুষের আর্থসামাজিক উন্নয়ন ত্বরান্বিত হবে বলেও তিনি প্রত্যাশা করেন।

যার প্রচেষ্টায় শহীদ গোলাম কিবরিয়া সেতু নির্মান কাজ শুরু কুষ্টিয়া-৪ আসনের সংসদ সদস্য ব্যারিস্টার সেলিম আলতাফ জর্জ জানান, এই  সেতুটি নির্মাণ আমার নির্বাচনী অঙ্গিকার ছিলো। আমি সংসদ সদস্য হওয়ার নয় মাসের মাথায় সেতুটির কাজ শুরু করতে পেরেছি। এর আগেও এই সেতু নির্মান নিয়ে অনেক মিথ্যা আশ্বাস পেয়েছে এলাকাবাসী, আমরা মিথ্যা আশ্বাস নয় আমার এলাকার মানুষকে দেওয়া কথা রেখেছি। সেতুর নির্মান কাজ এগিয়ে চলছে। আশা করা যায় খুব দ্রুত সময়ে কাজ শেষ হবে বলেও তিনি আশা করেন।

সেতু নির্মান প্রকল্প এলাকায় দায়িত্ব পালন করা স্থানীয় সরকার প্রকৌশল অধিদপ্তর (এলজিইডি)’র উপ-সহকারী প্রকৌশলী রফিকুল ইসলাম বলেন, সেতুটির নির্মান কাজ দ্রুত এগিয়ে যাচ্ছে। নকশা অনুযায়ী কাজ হচ্ছে। কাজের মান যথেষ্ট ভালো, ঠিকাদারী প্রতিষ্ঠানও খুব আন্তরিকতার সাথে কাজ করছে।

সেতুর নির্মাণ কাজ দেখাভালের দায়িত্বে থাকা প্রজেক্ট ম্যানেজার আশিক আলী জানান, সেতুর কাজ দ্রুত এগিয়ে যাচ্ছে। আমরা নির্ধারিত সময়ের আগেই সেতুটি হস্তান্তর করতে চাই।

সেতুর নির্মান কাজ পাওয়া ঠিকাদারী প্রতিষ্ঠান নির্মান নেশনটেক কমিউনিকেশনস লিমিটেডের অডিটর সোহেল পারভেজ জানান, সেতুর কাজ খুব দ্রুত সময়ে কাজ শেষ হবে। আমরা নেশনটেক কমিউনিকেশনস লিমিটেডের পক্ষ থেকে সব ধরনের প্রস্তুতি নেওয়া হয়েছে। আমরা আশা করি খুব স্বল্প সময়ে আমরা কোয়ালিটি সম্পন্ন কাজ শেষ করে সেতুটি হস্তান্তর করতে পারবো।

নেশনটেক কমিউনিকেশনস লিমিটেডের এমডি এফতেখার ইসলাম আলামিন শিমুল জানান, কুষ্টিয়া জেলাতে আমাদের বেশকিছু প্রকল্প চলমান। কাজের গুনগতমান নিয়ে আমরা কোন আপোষ করিনা। সারাদেশে আমরা কাজ করি কিন্তু কুষ্টিয়ার প্রতি আমার আলাদা একটা আবেগ কাজ করে। আমি আমার সকল স্টাফদের নির্দেশনা দিয়ে  রেখেছি কুষ্টিয়া জেলায় যত রকম কাজ আমরা করবো কোন কাজে কেউ যাতে কোন প্রকার বিরুপ মন্তব্য বা সমালোচনা না করতে পারে। আল্লাহর রহমতে আমরা খুব ভালো ভাবে সকল কাজ চালিয়ে যাচ্ছি, গড়াই নদীর উপর নির্মিত সেতুর কাজটিও দ্রুত গতিতে এগিয়ে চলছে আমরা আশা করি নির্ধারিত সময়ের আগেই আমরা সেতুটি হস্তান্তর করতে পারবো।

উল্লেখ্য, পল্লী সড়কে গুরুত্বপূর্ণ  সেতু বাস্তবায়ন প্রকল্পের আওতায় প্রায় ৯০  কোটি টাকা ব্যয়ে ৬৫০ মিটার দৈর্ঘ্য সেতুটি বাস্তবায়ন করছে স্থানীয় সরকার প্রকৌশল অধিদপ্তর (এলজিইডি)। নেশনটেক কমিউনিকেশনস লিমিটেড ও রানা বিল্ডার্স লিমিটেড নামের ঠিকাদারী প্রতিষ্ঠান নামের ঠিকাদারী প্রতিষ্ঠান সেতুটি নির্মাণ কাজের দায়িত্ব  পেয়েছে।

কালুখালীতে মামলা তুলে নিতে বাদীর উপর হামলা

কালুখালী প্রতিনিধি ॥ রাজবাড়ীর কালুখালীতে মামলা তুলে নিতে বাদী মোঃ আব্দুল মালেক এর উপর হামলা করেছে প্রতিপক্ষরা। এ ব্যাপারে হামলার শিকার মোঃ আব্দুল মালেক কালুখালী থানায় সাধারণ ডায়েরী করেছেন। জিডি নং- ৫১৭, তাং-২০/০৩/২০২০ ইং। ঘটনার বিবরণে গতকাল রবিবার এ প্রতিনিধিকে তিনি জানান, আমি গত ১৫/০১/২০২০ ইং তারিখে রাজবাড়ী কোর্টে বিবাদীর বিরুদ্ধে চিটিং মামলা করি। মামলা নং- মিসপি-১১/২০২০। তারই রেশ ধরে গত শুক্রবার রাত সাড়ে ৭টার দিকে আমি মোবাইলে রিচার্জ করার জন্য বাংলাদেশ হাট মোড়ে যাওয়ার সময় কবরস্থান সংলগ্ন হতে বিবাদী মোঃ রফিকুল ইসলাম, পিতাঃ মোঃ মোনতাজ মোল্লা, গ্রামঃ কালীনগর, ইউপিঃ বোয়ালিয়া, উপজেলাঃ কালুখালী, জেলাঃ রাজবাড়ী সহ অজ্ঞাত ৩/৪জন আমাকে আটক করে রামদা সামনে রেখে হুমকি দিয়ে বলে মামলা তুলে নে তা না হলে তোকে খুন করে ফেলবো। তখন তিনি বলেন সেটা কোর্টে বোঝা যাবে এখন আমাকে যেতে দাও। তখন তারা আমাকে রামদা দিয়ে কোপাইতে থাকে। কোনোমতে প্রাণ নিয়ে আমি দৌড়ায়ে পালাতে সক্ষম হই। বর্তমানে তিনি ঝুকির মধ্যে জীবন কাটাচ্ছেন বলেও জানান। সর্বপরী তিনি প্রশাসনের দৃষ্টি আকর্ষণ করেন।

আলমডাঙ্গার নবাগত ওসি আলমগীর কবীরের সাথে প্রেসক্লাব নেতৃবৃন্দের মতবিনিময়

আলমডাঙ্গা অফিস ॥ আলমডাঙ্গার নবাগত থানা অফিসার ইনচার্জ আলমগীর কবীররের সাথে প্রেসক্লাবের কর্তব্যরত সাংবাদিকদের মতবিনিময় ও করোনা ভাইরাস নিয়ে করনীয় বিষয়ে আলোচনা অনুষ্ঠিত হয়েছে। গতকাল থানা অফিসার ইনচার্জের অফিস কক্ষে সন্ধ্যা ৭ টার দিকে মতবিনিময় সভা অনুষ্ঠিত হয়। এ সময় ওসি আলমগীর কবীর খোলামেলা বক্তব্যে বলেন আমারা যারা পুলিশ সার্বক্ষনিক জনগনের সেবা দিয়ে থাকি, আপনারা যারা সাংবাদিক পেশা গত কারনে আপনারাও জনগনের সেবা দিয়ে থাকেন, পার্থক্য শুধু এই টুকু আমাদের লোকবল, হাতে অস্ত্র আছে আপনাদের কাছে সেটা নেই, তবে অস্ত্রের চেয়েও বেশি গুরুত্ব আপনাদের কলম। আমি বিশ্বাস করি পুলিশ যেমন অস্ত্র কাছে থাকলেও সেটা সঠিক জায়গা ছাড়া ব্যাবহার করতে পারে না, তেমনি আপনাদের কলমও সামাজের নানা সমস্যার কথা তুলে ধরেন। আমাকে আপনাদের একজন ভাবলে আমি খুসি হব। আমি যেখানেই চাকরি করেছি সেখানেই সাংবাদিকদের সাথে আমার বন্ধুত্ব অটুট থাকে। এ সময় উপস্থিত ছিলেন প্রেসক্লাবের সভাপতি খন্দকার শাহ আলম মন্টু, সাধারন সম্পাদক হামিদুল ইসলাম আজম, সহ- সভাপতি আতিয়ার রহমান মুকুল, যুগ্ম সম্পাদক প্রশাস্ত বিশ্বাস, সহ- সভাপতি শেখ শফিউজ্জামান, ইউনুচ আলী মন্ডল, সহ সম্পাদক রুনু খন্দকার, গোলাম সরোয়ার সদু, শরিফুল ইসলাম, তানভীর আহম্মেদ সোহেল, সাংবাদিক আবুল কাশেম টুকু, সৈয়দ সাজেদুল হক, হাসিবুল হক, সোহেল হুদা, শরিফুল ইসলাম, আতিক বিশ্বাস, লিপু, এমদাদ হোসেন ও এস আই রফিকুল ইসলাম, এসআই আসিক প্রমুখ। আলোচনায় করোনা ভাইরাস প্রসঙ্গ উঠলে ওসি বলেন সরকারি সিদ্ধান্ত যেটা আসবে সেটা পালন করতে আমরা বদ্ধপরিকর, আশাকরি আপনারা আমাদের পাশে থাকবেন। বাজারে দ্রব্যমুলের উর্ধগতি নিয়ে ও বিদেশ থেকে যে সমস্ত ব্যক্তিরা এসেছে উনারা যেন সরকারি সিদ্ধান্ত মেনে চলে। ওসি বলেন আজ সিদ্ধান্ত হয়েছে শপিং মল,চায়ের দোকানে লোক সমাগম বন্ধ, হাটবাজার, যেমন গরুর হাট, ছাগলের হাটসহ জনসমাগম হয় এমন সব বন্ধ করার সিদ্ধান্ত নিয়েছে।

কুষ্টিয়ার মুখ পত্রিকা’র উদ্যোগে করোনা ভাইরাস প্রতিরোধ সংক্রান্ত লিফলেট ও মাস্ক বিতরণ

আল-মাহাদী ॥ কুষ্টিয়ার ভেড়ামারা গোডাউন মোড় এলাকায় গতকাল  রোববার সকাল ১০টায় করোনা ভাইরাস নিয়ে আতঙ্ক নয়, জনসচেতনতা সৃষ্টির লক্ষে মুক্তচিন্তার অগ্রদূত সাপ্তাহিক কুষ্টিয়ার মুখ পত্রিকা ও দি-পপুলার ডায়াগনষ্টিক এন্ড ডক্টরস্ পয়েন্ট এর উদ্যোগে করোনা ভাইরাস প্রতিরোধ সংক্রান্ত লিফলেট ও মাস্ক বিতরণ করা হয়। কুষ্টিয়ার মুখ পত্রিকার ভারপ্রাপ্ত সম্পাদক ডাঃ আমিরুল ইসলাম মান্নানের সভাপতিত্বে উক্ত অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথি হিসেবে উপস্থিত ছিলেন, ভেড়ামারা উপজেলা নির্বাহী অফিসার সোহেল মারুফ। এসময় বিশেষ অতিথি হিসেবে উপস্থিত ছিলেন, ভেড়ামারা পৌরসভার মেয়র আলহাজ্ব শামিমুল ইসলাম ছানা, ভেড়ামারা থানার অফিসার ইনচার্জ (ওসি) মোঃ শাহজালাল, উপজেলা যুবলীগের যুগ্ন সাধারণ সম্পাদক এমএ আজিজ শেখ ও ভেড়ামারা প্রেসক্লাবের আহবায়ক রেজাউল করিম। এছাড়াও  ভেড়ামারা প্রেসক্লাবের যুগ্ন আহবায়ক ইসমাইল হোসেন বাবু, শাহজামাল, এস.এম.আবু ওবাইদা-আল-মাহাদী, প্রধান শিক্ষক সমিতি’র সভাপতি মোঃ মোয়াজ্জেম হোসেন, খোলা কাগজ পাঠক ফোরাম এগারজন এর সভাপতি মোঃ রফিকুল ইসলাম, উপদেষ্টা ডাঃ মোহাঃ আসমান আলী, সহ-সভাপতি শামসুল হক, কোষাধ্যক্ষ শাইজী আতিয়ার রহমান, সাংবাদিক ফিরোজ মাহমুদ, নোমান জহির রাজা, জাহিদ হাসান, শাহীন আলম লিটন, জহিরুল কবীর নবীন, মাহমুদ্দোল্লাহ সোহেল, মিলন আলী, হাসানুজ্জামান কাকন, মোঃ জাকির হোসাইন প্রমূখ উপস্থিত ছিলেন।

কুষ্টিয়ায় বটতৈল ইউনিয়নের সেই সমালোচিত শিল্পী মেম্বর অবশেষে বরখাস্ত

নিজ সংবাদ ॥ বয়স্ক, বিধবা, পঙ্গু, মাতৃকালিন ভাতা, ভিজিএফ, চালের কার্ড, নলকুপ প্রদান, বিভিন্ন প্রতিষ্ঠানে চাকুরী দেয়ার নামে মিথ্যা প্রতিশ্র“তি দিয়ে শত শত মানুষের সাথে প্রতারণা করে মোটা অংকের নগদ অর্থ হাতিয়ে নেয়াসহ বিভিন্ন অভিযোগে অভিযুক্ত কুষ্টিয়া বটতৈল ইউনিয়নের সমালোচিত শিল্পি মেম্বারকে তার পদ থেকে বরখাস্ত করেছে স্থানীয় সরকার, পল্লী উন্নয়ন ও সমবায় মন্ত্রণালয় স্থানীয় সরকার বিভাগ ইপ-১ অধিশাখা। গত বছরের ১৭ নভেম্বর বটতৈল ইউনিয়নের সংরক্ষিত মহিলা আসনের ৪,৫ ও ৬ নং ওয়ার্ডের সদস্য শিল্পি খাতুনের বিরুদ্ধে উপজেলার নির্বাহী অফিসার বরাবর লিখিত অভিযোগ করেন ৩২ জন ভুক্তভোগী নারী। পরে সাংবাদিকরা বটতৈল ইউনিয়ন পরিষদে উপস্থিত হলে তাৎক্ষনিক বটতৈল ইউনিয়নের চেয়ারম্যান এম এ মোমিন মন্ডল সাংবাদিকদের জানান অভিযুক্ত ইউপি মহিলা সদস্য শিল্পি খাতুনকে সাময়িক বরখাস্ত করা হয়েছে। কিন্তু বিস্তারিত না জানিয়ে তিনি কৌশলে এড়িয়ে যান। ওই সময়ই সেখানে ভুক্তভোগীরা অভিযোগ করেন, শিল্পি  মেম্বার বিভিন্ন সময়ে বিধবা, মাতৃত্বকালীন, বয়স্ক ভাতার কার্ড ও চাকুরী  দেয়াসহ বিভিন্নভাবে প্রতারণা করে ২ হাজার থেকে ১০ হাজার টাকা পর্যন্ত হাতিয়ে নিয়েছেন। যা বেশ কয়েকটি পত্রিকায় সংবাদ প্রকাশ হয়।  সে অভিযোগের প্রেক্ষিতে গত ৩ ডিসেম্বর  ২০১৯ এই অভিযোগের তদন্ত করে কুষ্টিয়ায় সদর উপজেলা মহিলা বিষয়ক কর্মকর্তা মর্জিনা খাতুন ও সমাজসেবা অফিসার আবু রায়হানের তদন্ত দল। বটতৈল ইউনিয়ন পরিষদে তদন্ত দলের উপস্থিতি টের পেয়ে কৌশলে সটকে পড়েন ওই শিল্পী মেম্বর। এ সময় খবর পেয়ে সেখানে অভিযোগ জানাতে উপস্থিত হন আরো প্রায় ৫০ জন ভুক্তভোগী অভিযোগকারী। সে সময় বটতৈল ইউনিয়ন চেয়ারম্যান এম এ মোমিন মন্ডল উপস্থিতিতে চলে তদন্ত। পরে তখন তদন্তকারী কর্মকর্তারা অভিযোগের শতভাগ সত্যতা পাওয়া কথা সাংবাদিকদের জানান। এরপর শিল্পি মেম্বার পুনঃতদন্ত চেয়ে আবার আবেদন করেন এবং বিভিন্ন মহলে দৌড়ঝাঁপ শুরু করেন। এতে শিল্পী  মেম্বারকে রক্ষা করতে ক্ষমতাসীন দলের জেলা পর্যায়ের একজন নেতা শিল্পী  মেম্বারের পক্ষে দৌড়ঝাঁপ শুরু করে। সে সংবাদও পত্রিকায় প্রকাশিত হয়। এছাড়া শিল্পীর বিরুদ্ধে ভুক্তভোগীরা যেন আর কোন প্রকার অভিযোগ না দিতে পারে সে জন্য অন্যান্য ইউপি সদস্যদের চেয়ারম্যান নানা পরামর্শ প্রদান করেন  বলে নাম প্রকাশ না করার শর্তে জানান এক ইউপি সদস্য। অপরদিকে আর কোন সংবাদ প্রকাশ না করতে সাংবাদিক অর্পণ মাহমুদকে ফোনে হুমকী দেন ওই মেম্বার।  আবেদনের প্রেক্ষিতে পরে ৩ জানুয়ারি তৃতীয় দফায় পুনঃতদন্ত করা হয়। সে সময় তদন্তে সত্যতা পাওয়া গেছে জানিয়ে দ্রুত ব্যবস্থা নেয়া হবে হবে জানান তদন্তকারী দলের কর্মকর্তা। পরে গত ২৪ ফেব্র“য়ারি ২০২০ তারিখ সরকার স্থানীয় সরকার, পল্লী উন্নয়ন ও সমবায় মন্ত্রণালয়ের স্থানীয় সরকার বিষয়ক ইপ-১ অধিশাখার উপসচিব মোহাম্মদ ইফতেখার আহামেদ  চৌধুরী স্বাক্ষরিত ৪৬.০০.৫০০০.০১৭.২৭.০০১.১৯-২১৮ স্মারকে এই বিষয়ে প্রজ্ঞাপন জারি করে।

প্রজ্ঞাপনে উল্লেখ রয়েছে কুষ্টিয়া সদর উপজেলার বটতৈল ইউনিয়নের সংরক্ষিত মহিলা আসনের ৪, ৫ ও ৬ নং ওয়ার্ডের সদস্য মোছাঃ শিল্পি খাতুনের বিরুদ্ধে বিধবা, মাতৃত্বকালীন ও বয়স্কভাতার কার্ড প্রদানের নামে অর্থ আদায়ের অভিযোগ তদন্তে প্রমানিত হওয়ায় জনস্বার্থে তার দ্বারা ইউনিয়ন পরিষদের ক্ষমতা প্রয়োগ প্রশাসনিক দৃষ্টিকোণে সমীচীন নয় মর্মে সরকার মনে করে। মোছাঃ শিল্পি খাতুন কর্তৃক সংঘটিত অপরাধমূলক কার্যক্রম পরিষদসহ জনস্বার্থের পরিপন্থী বিবেচনায় স্থানীয় সরকার (ইউনিয়ন পরিষদ) আইন ২০০৯ এর ৩৪(১) ধারা অনুযায়ী উল্লেখিত ইউপি মহিলা সদস্যকে তার স্বীয় পদ হতে সাময়িকভাবে বরখাস্ত করা হলো মর্মে প্রজ্ঞাপনে জানানো হয়।

একজন ব্রিটিশ মন্টু’র গল্প

মুক্তিযুদ্ধে প্রথম পতাকা উড়ালেও আজো পাননি মুক্তিযোদ্ধার স্বীকৃতি

নিজ সংবাদ ॥ আজ ২৩মার্চ কুষ্টিয়া ইসলামীয়া কলেজ মাঠে প্রথম স্বাধীন বাংলাদেশের পতাকা উত্তোলিত হয়। যে সময়টি পাকিস্তান দিবসের আয়োজন চলমান তখন সেই দিবস বর্জন করে ইসলামীয়া কলেজ মাঠে তৎকালীন কুষ্টিয়া জেলা আওয়ামী লীগ আয়োজন করে জনসভার। জনসভায় একে একে হাজারো মুক্তিকামী দামাল ছেলেরা উপস্থিত হতে থাকেন ইসলামীয়া কলেজ মাঠ প্রাঙ্গণে। উপস্থিত হন তৎকালীন জেলা আওয়ামী লীগের সহ-সভাপতি আহসান উল্লাহ এমপিসহ অন্যান্য নেতৃবৃন্দ। আহসান উল্লার সভাপতিত্বে যথারীতি শুরু হয় জনসভা। তখন পাকিস্তান বিরোধী উত্তপ্ত বক্তব্য চলছিল। এরই মধ্যে মঞ্চের ঠিক পেছনে নেতাকর্মীদের জটলা লক্ষ করা যায়। জটলার কারন জানা গেল। মুক্তিযুদ্ধের পতাকা উত্তোলনের প্রস্তুতি চলছিল। তৎকালীন জেলা ছাত্রলীগের প্রচার সম্পাদক শফিউর রহমান মন্টু একটি বাঁশের সাথে পতাকা বাঁধছিলেন। এসময় তৎকালীন ছাত্রলীগ নেতা খন্দকার জুলফিকার আলী আরজু ও জাফর খান পতাকা উত্তোলনে তাগিদ দেন। তারা বলেন তোমরা পতাকা ওড়াও যা হয় হবে। তখন বিকেল ৪টা বাজে। তাদের কথায় ওই জনসভা চলাকালিন সময়ে উত্তোলন করা হয় মুক্তিযুদ্ধের পতাকা। পতাকা উত্তোলনের ছবিও তোলেন আলোকচিত্রী আব্দুল হামিদ রায়হান। যে ছবি আজো কালের স্বাক্ষি হয়ে রয়েছে। আজ ২৩মার্চ মুক্তিযুদ্ধের প্রথম পতাকা উত্তোলন দিবস। কিন্তু এই পতাকা উত্তোলন নিয়ে আজো প্রশ্ন রয়ে গেছে। প্রশ্ন ২৩ ও ২৫ মার্চ নিয়ে। এ্যাড. আব্দুল জলিল না শফিউর রহমান মন্টু প্রথম পতাকা উত্তোলন করেন। আসলে দু’জনই পতাকা উত্তোলন করেন। তবে একজন আগে আর আরেকজন পরে। শফিউর রহমান মন্টুর হাতেই ওড়ে প্রথম স্বাধীন বাংলার পতাকা।

এবিষয়ে মু্িক্তযুদ্ধের আলোকচিত্রী আব্দুল হামিদ রায়হান জানান মুক্তিযুদ্ধের প্রথম পতাকা উত্তোলন করা হয় কুষ্টিয়ায় ২৩ মার্চ বিকেল ৪টায়। শফিউর রহমান মন্টুর হাত ধরেই ওই পতাকা উত্তোলন করা হয়। ওই পতাকা উত্তোলনের ছবি আমার হাত দিয়ে উত্তোলন করা হয়।

কুষ্টিয়ার পৌর মেয়র আনোয়ার আলী বলেন ২৩ মার্চ প্রথম কুষ্টিয়ায় মুক্তিযুদ্ধের পতাকা উত্তোলন করা হয়। আমরা যদ্দুর জানি শফিউর রহমান মন্টুসহ আমরা সবাই উত্তোলনের সময় ছিলাম।

পতাকা উত্তোলন নিয়ে বিভিন্ন সময়ে বিভিন্নভাবে ভুল তথ্য দিয়ে ইতিহাস বিকৃত করা হয়েছে বলে দাবী করে সঠিক ইতিহাস তুলে ধরে শফিউর রহমান মন্টু বলেন, মুক্তিযুদ্ধে আমাদের কুষ্টিয়া জেলার ভুমিকা ছিল অপরিসীম। আমরাই যুদ্ধ শুরুর এক সপ্তাহের মধ্যে কুষ্টিয়াকে হানাদারমুক্ত করেছিলাম। যুদ্ধ শুরুর আগে থেকেই এজেলার মুক্তিকামী মানুষের কর্মকান্ড ছিল অগ্রগামী। এই জেলার আনাচে কানাচে মুক্তিযুদ্ধের অনেক স্মৃতি ছড়িয়ে ছিটিয়ে আছে। তিনি বলেন, যুদ্ধে আমরা অগ্রগামী হলেও আমাদের জেলার মুক্তিযোদ্ধার ইতিহাস প্রচারের ক্ষেত্রে আমরা অনেক পিছিয়ে আছি। এই জেলার যুদ্ধকালীন ইতিহাস তুলে ধরতে তেমন কোন উদ্যোগ আজো গ্রহন করা হয়নি। যে যার মত পেরেছে বই প্রকাশ করেছে। আর করেছে কিছু লেখালেখি। যেকারনে অনেক ইতিহাস সঠিকভাবে উঠে আসেনি। তিনি আরো বলেন, ৭১’র মার্চ মাসের প্রথম দিকেই সারা দেশ উত্তাল হয়ে ওঠে। ২মার্চ ঢাকা বিশ^বিদ্যালয়ের ছাত্র সংগ্রাম পরিষদ মানচিত্রখন্ডিত স্বাধীন বাংলাদেশের পতাকা উত্তোলন করে। মন্টু আরো আরো বলেন কুষ্টিয়ায় ১৯৭১ সালের ২৫ মার্চ প্রথম স্বাধীন বাংলাদেশের পতাকা উত্তোলন করা হয়। আসলে প্রকৃত সত্য তথ্য হলো ১৯৭১ সালের ২৩ মার্চ পাকিস্তান দিবসেই আমরা কুষ্টিয়ায় ইসলামীয়া কলেজ মাঠে স্বাধীন বাংলাদেশের পতাকা উত্তোলন করি। তিনি আরো বলেন সকলের জানা প্রয়োজন তৎকালীন কুষ্টিয়া জেলা ছাত্রলীগ দু’ভাগে বিভক্ত ছিল। কেন্দ্র অনুমোদিত কমিটির সভাপতি ছিলেন আব্দুল জলিল (বর্তমান আইন পেশায় নিয়োজিত), আর সাধারণ সম্পাদক ছিলেন আব্দুল হাদী(স্বাধীনতা পরবর্তি রক্ষিবাহিনীর হাতে নিহত হন) এবং সাধারণ ছাত্রদের সমর্থিত জেলা ছাত্রলীগের আরো একটি কমিটি ছিল, যার সভাপতি ছিলেন মনোয়ার হোসেন(পরবর্তিতে তিনি সরকারী কলেজের ভিপি ছিলেন), সাধারণ সম্পাদক ছিলেন চিত্রাভিনেতা রাজু আহমেদ’র ছোট ভাই ওবায়দুল হক সেলিম (বর্তমানে মৃত), আর আমি শফিউর রহমান মন্টু (পরবর্তিতে আমার পরিচয় ব্রিটিশ মন্টু) এই কমিটির প্রচার সম্পাদক ছিলাম। তিনি আরো বলেন তৎকালীন জেলা আওয়ামী লীগের সভাপতি ছিলেন এমএনএ ব্যারিষ্টার এম আমীর-উল-ইসলাম, সাধারণ সম্পাদক ও এমএনএ এ্যাড. আজিজুর রহমান আক্কাস, সাংগঠনিক সম্পাদক ছিলেন এ্যাড. শামসুল আলম দুদু, শ্রম সম্পাদক ছিলেন আনোয়ার আলী (বর্তমান পৌর মেয়র)সহ বিভিন্ন থানা ও মহকুমার নেতৃবৃন্দ ও সাধারণ ছাত্রদের মনোনীত, আমাদের এই কমিটিকে সমর্থন ও সহযোগিতা করতেন। অন্যদিকে কেন্দ্রীয় অনুমোদিত জলিল হাদী কমিটিকে সমর্থন করতেন আব্দুর রউফ চৌধুরীসহ কিছু নেতা। ২৩ মার্চের স্মৃতিচারণ করতে গিয়ে শফিউর রহমান মন্টু বলেন ২৩ মার্চ পাকিস্তান দিবস বর্জন করে বাংলাদেশ দিবস ঘোষণার উদ্দেশ্যে ঐদিন বিকেল ৩টায় কুষ্টিয়া জেলা আওয়ামী লীগ ইসলামীয়া কলেজ মাঠে জনসভার আয়োজন করে। জেলা আওয়ামী লীগের সহ-সভাপতি এ্যাড. আহসান উল্লাহ এমপি’র সভাপতিত্বে জনসভা শুরু হলে হাজার হাজার জনতার সমাগম ঘটে জনসভাস্থলে। পাকিস্তান বিরোধী শ্লোগান দিয়ে  নেতা-কর্মীরা সমবেত হতে থাকে। সেদিন কলেজের একাডেমিক ভবনের সীড়ির সামনেই উত্তর দিক মুখ করে মঞ্চ তৈরী করা হয়। দুপুরে আমাদের কমিটির সাধারণ সম্পাদক ওবায়দুল হক আমাকে ও ছাত্রলীগের সহ-সভাপতি আবু জাফর খানকে তাঁর কোর্টপাড়ার বাসায় ডেকে পাঠান। আমরা উপস্থিত হলে তিনি আমাদেরকে জানান, ঢাকা থেকে শহীদ ভাই স্বাধীন বাংলাদেশের পতাকা পাঠিয়েছেন। পতাকাটিবের করে আমাদের দেখান এবং বলেন এটা আজকের জনসভায় উত্তোলন করতে হবে। তাঁর নিকট থেকে পতাকাটি নিয়ে আমি পকেটের মধ্যে ভরে চলে আসি। এর পর আমরা পতাকাটি উত্তোলনের প্রস্তুতি নিতে থাকি। তবে প্রচন্ড ভয় কাজ করছিল। ৩টায় জনসভা শুরু হলে তৎকালীন ছাত্রলীগ ে জুলফিকার আলী আরজু ও জাফর খান বারবার তাগাদা দিতে থাকে। তারা আমাকে বলে, যা হয় হবে পতাকা উড়িয়ে দে। পাকিস্তান দিবসকে লাথি মেরে বাংলাদেশকে স্বাধীন করার মঞ্চে তখন গরম বক্তব্য চলছিল। আমি আগেই বক্তব্য দিয়ে মঞ্চ থেকে নেমে এসেছি। কলেজের পূর্ব দিকের একটি ভবনের রিপিয়ারিং কাজ চলছিল। সেখানে পড়ে থাকা একটি লম্বা বাঁশ নিয়ে আনুমানিক বিকেল ৪টার দিকে মঞ্চের পিছনের দিকে তার সাথে পতাকাটি বাধলাম। হাফিজ বুক ডিপোর মালিক হাফিজ আবুল কালাম আজাদ তখন একটি মিছিল নিয়ে নিজের বন্দুক দিয়ে ফায়ার করতে করতে সভাস্থলে আসে। এরপরই আমি পতাকা বাঁধা বাঁশ নিয়ে জয়বাংলা শ্লোগান দিতে দিতে মঞ্চের সামনে আসি। তখন উপস্থিত জনতা জয়বাংলা শ্লোগান দিয়ে মুখরিত করে তোলে জনসভাস্থল। নেতারা সবাই ছুটে এসে পতাকা লাগানো বাঁশে হাত লাগিয়ে শ্লোগান দিতে থাকে। সেসময় বর্তমান জেলা আওয়ামী লীগের সহ-সভাপতি আলোকচিত্রী আব্দুল হামিদ রায়হান ভাই ছুটে এসে বলেন ঠিকমত ধর আমি ছবি তুলব। রায়হান ভায়ের সেই তোলা ছবিটিই ২৩ মার্চের পতাকা উত্তোলনের সাক্ষি হয়ে আছে। এর পর আমি মঞ্চের সামনে পতাকা বাঁধা বাঁশটি পুতে দিই। আমার স্পষ্ট মনে আছে সে সময় দুদু ভাই বক্তব্য রাখছিলেন। তিনি বললেন আজ থেকেই এই পতাকাই বাংলাদেশের পতাকা। জীবনের ক্রান্তিলগ্নে মুক্তিযুদ্ধের এইঅগ্রনায়ক মনে করেন আর মুক্তিযুদ্ধের ইতিহাস বিকৃতি নয়, সঠিক ইতিহাস ভবিষ্যৎ প্রজন্মকে জানাতে হবে।

অবশেষে ফিলিস্তিনের গাজা উপত্যকায় করোনার হানা

ঢাকা অফিস ॥ প্রাণঘাতি করোনাভাইরাস এবার অবরুদ্ধ গাজা উপত্যকায় হানা দিয়েছে। প্রথমবারের মতো দেশটিতে দুইজন করোনা আক্রান্ত শনাক্ত হয়েছে বলে স্থানীয় স্বাস্থ্য মন্ত্রণালয় জানিয়েছে। গত বৃহস্পতিবার গাজা ও মিসরের মধ্যবর্তী রাফা সীমান্ত পারাপারের সময় এই দুই রোগীকে পৃথক করা হয়েছে বলে আনাদলু এজেন্সির খবরে বলা হয়েছে। আক্রান্ত দুই ব্যক্তি বর্তমানে কোয়ারেন্টিনে রয়েছেন। রোববার গাজা সিটিতে এক সংবাদ সম্মেলনে স্বাস্থ্য কর্মকর্তা ইউসুফ আবো আল-রাইশ বলেন, আক্রান্ত দুইজন সম্প্রতি পাকিস্তান থেকে ফিরেছিল। ওই দুই ব্যক্তির করোনা পরীক্ষা করা হয় এবং ফলাফল পজিটিভ আসে। আক্রান্ত দুই করোনা রোগী পুরুষ এবং তাদের বয়স যথাক্রমে ৩০ ও ৪০। বর্তমানে তাদের শারীরিক অবস্থা স্থিতিশীল বলেও জানান তিনি। বিশ্বব্যাপী ছড়িয়ে পড়া করোনাভাইরাস অনেক চীন, ইতালির মতো উন্নত দেশগুলোকে পর্যদুস্ত করলেও এতদিন ফিলিস্তিনের গাজা উপত্যকাটি এ ভাইরাস মুক্ত ছিল। ইসরাইল ও মিসরের সঙ্গে সীমান্ত বন্ধসহ শুরু থেকেই নানান পদক্ষেপ নিয়েছে ফিলিস্তিন স্বাস্থ্য মন্ত্রণালয়। অপর্যাপ্ত উপকরণ নিয়েই ভাইরাসটির বিরুদ্ধে লড়ছে ইসরাইলি নিপীড়নে আক্রান্ত দেশটি। বিশেষজ্ঞরা সতর্ক করে দিয়ে বলেছেন, গাজায় করোনা মহামারি আকারে ছড়িয়ে পড়লে সেখানে মারাত্মক বিপর্যয় নেমে আসবে।

সরকারি কর্মকর্তা-কর্মচারীদের সার্বক্ষণিক কর্মস্থলে থাকার নির্দেশ

ঢাকা অফিস ॥ প্রাণঘাতী করোনাভাইরাসের বিস্তার রোধে ও জরুরি পরিস্থিতি মোকাবেলায় সরকারি কর্মকর্তা-কর্মচারীদের সার্বক্ষণিক কর্মস্থলে থাকার নির্দেশ দিয়েছে মন্ত্রিপরিষদ বিভাগ। রোববার মন্ত্রিপরিষদ বিভাগের এক চিঠিতে এ নির্দেশনা দেয়া হয়েছে বলে সরকারি তথ্য বিবরণীতে জানানো হয়। এতে বলা হয়, করোনাভাইরাস (কোভিড-১৯) প্রতিরোধ ও এর প্রাদুর্ভাবজনিত যে কোনো জরুরি পরিস্থিতি মোকাবেলায় প্রয়োজনীয় সহযোগিতা দেয়ার লক্ষ্যে পরবর্তী নির্দেশ না দেয়া পর্যন্ত বিভাগ, জেলা ও উপজেলা পর্যায়ের সব সরকারি দফতরের কর্মকর্তা-কর্মচারীর সার্বক্ষণিক কর্মস্থলে উপস্থিতি নিশ্চিত করতে নির্দেশ দেয়া হয়েছে। এই আদেশের ফলে পরবর্তী নির্দেশ না আসা পর্যন্ত সরকারি কর্মকর্তা-কর্মচারীরা ছুটি কাটাতে কর্মস্থলের বাইরে যেতে পারবেন না।

 

কুয়েতে কারফিউ জারি অমান্য করলে তিন বছরের জেল

ঢাকা অফিস ॥ চীনের উহান থেকে সারা বিশ্বে মহামারী আকারে ছড়িয়ে পড়া করোনাভাইরাসের বিস্তার রোধে কুয়েতে কারফিউ জারি করা হয়েছে। এ নির্দেশ অমান্য করলে তিন বছরের জেল বা অনধিক ১০ হাজার কুয়েতি দিনার জরিমানার কথা বলা হয়েছে।

রোববার স্থানীয় সময় বিকাল ৫টা থেকে ভোররাত ৪টা পর্যন্ত ১১ ঘণ্টা কারফিউ বলবৎ থাকবে। খবর তুর্কি রাষ্ট্রীয় সংবাদ সংস্থা আনাদলুর। দেশটির উপ-প্রধানমন্ত্রী আনাস আল-সালেহ বলেন, কেউ নির্দেশনা ভঙ্গ করলে তিন বছর পর্যন্ত জেল অথবা ১০ হাজার কুয়েতি দিনার পর্যন্ত জরিমানা করা হবে। তিনি বলেন, করোনাভাইরাস বিস্তার প্রতিরোধে পূর্ব সতর্কতামূলক এ কারফিউ জারি করা হয়েছে। কুয়েতের স্বাস্থ্য মন্ত্রণালয় জানিয়েছে শনিবার দেশটিতে ১৭ জন নতুন করে করোনাভাইরাসে আক্রান্ত হয়েছে। ফলে সবমিলিয়ে আরব্য উপসাগরীয় দেশটিতে ১৭৬ জনের দেহে করোনাভাইরাস শনাক্ত হয়েছে। এ দিকে কুয়েতে সরকারি ও বেসরকারি সব অফিস আরও দু’সপ্তাহ বন্ধ রাখার নির্দেশ দেওয়া হয়েছে। সারা বিশ্বে ৩ লাখ ৭ হাজার ব্যক্তি করোনাভাইরাসে আক্রান্ত হয়েছেন। এ ছাড়া ভাইরাসটিতে আক্রান্ত হয়ে ১৩ হাজারের বেশি মানুষের মৃত্যু হয়েছে।

জরুরি বিষয় ছাড়া অন্যান্য মামলার কার্যক্রম মুলতবি থাকবে

ঢাকা অফিস ॥ নভেল করোনাভাইরাসের প্রাদুর্ভাবের মধ্যে স্বাস্থ্যঝুঁকির কথা বিবেচনায় নিয়ে অধস্তন আদালতে জামিন-অস্থায়ী নিষেধাজ্ঞার মতো জরুরি কোনো বিষয় ছাড়া অন্যান্য বিষয়ের মামলা মুলতবি রাখতে সার্কুলার জারি করেছে সুপ্রিম কোর্ট। সুপ্রিম কোর্টের রেজিস্ট্রার জেনারেল মো. আলী আকবরের স্বাক্ষর করা সার্কুলারটি রোববার সর্বোচ্চ আদালতের ওয়েবসাইটে প্রকাশ করা হয়েছে। এতে বলা হয়, “করোনাভাইরাসজনিত (কোভিড-১৯) উদ্ভূত পরিস্থিতিতে দেশের অধস্তন আদালতসমূহে অধিক সংখ্যক জনসমাগম পরিহার করা প্রয়োজন। এতদুদ্দেশ্যে দেশের অধস্তন আদালতসমূহ জামিন/অস্থায়ী নিষেধাজ্ঞা ও অন্যান্য জরুরি বিষয় ব্যতীত অন্যান্য বিষয় যৌক্তিক সময়ের জন্য মুলতবিকরণ আবশ্যক।” প্রধান বিচারপতির আদেশে এই সার্কুলার জারি করা হয় উল্লেখ করে অবিলম্বে তা কার্যকর হবে বলেও জানানো হয়েছে। এর আগে গত বৃহস্পতিবার অধস্তন আদালতে কারাবন্দিদের মামলার শুনানিতে হাজির করার বাধ্যবাধকতা শিথিল করেছে উচ্চ আদালত। এ সংক্রান্ত সুপ্রিম কোর্টের এক বিজ্ঞপ্তিতে বলা হয়, “করোনাভাইরাসজনিত (কভিড-১৯) উদ্ভূত পরিস্থিতিতে কারাগার হতে কারাবন্দি-আসামিদের জামিন শুনানিকালে এবং মামলার অন্যান্য কার্যক্রমে আদালতে উপস্থিতকরণ অত্যন্ত ঝুঁকিপূর্ণ।” এ কারণে জামিন শুনানি ও মামলার অন্যান্য কার্যক্রমে কারাবন্দি-আসামিদের কারাগার থেকে আদালতে হাজির না করার নির্দেশনা দিয়ে বলা হয়, “কারাবন্দি-আসামিদের কারাগারে রেখে জামিন শুনানি করতে হবে। অন্যান্য ক্ষেত্রে প্রয়োজনে মামলার কার্যক্রম মুলতবি করতে হবে।”

অসুস্থ গরুর মাংস বিক্রির দায়ে কসাইয়ের ২০ হাজার টাকা দন্ড

দৌলতপুরে নিষেধাজ্ঞা অমান্য করে বৌভাত অনুষ্ঠান করায় বরপক্ষের ১০ হাজার টাকা অর্থদন্ড

শরীফুল ইসলাম ॥ কুষ্টিয়ার দৌলতপুরে করোনা ভাইরাসের কারনে দেশব্যাপী জনসমাগম ও বিয়ের অনুষ্ঠান নিষিদ্ধ করা হলেও সরকারী নিষেধ অমান্য করে দৌলতপুরে বৌভাত অনুষ্ঠান করায় এক ব্যক্তির ১০ হাজার টাকা অর্থদন্ড করেছেন ভ্রাম্যমান আদালত। অপরদিকে অসুস্থ গরুর মাংস বিক্রয়ের অভিযোগে এক কসাইয়ের ২০ হাজার টাকা অর্থদন্ড করেছেন একই  ভ্রাম্যমান আদালত। ভ্রম্যমান আদালত সূত্রে জানাগেছে, উপজেলার প্রাগপুর বাজারে প্রাগপুর এলাকার ভান্টু কসাইয়ের ছেলে নুরুজ্জামান কসাই অসুস্থ গরুর মাংস বিক্রয় করছে এমন সংবাদ পেয়ে দৌলতপুর সহকারী কমিশনার (ভূমি) ও নির্বাহী ম্যাজিষ্ট্রেট মো. আজগর আলীর নেতৃত্বে ভ্রাম্যমান আদালত গতকাল রবিবার দুপুর ১.৩০টার দিকে অভিযান চালায়। এসময় মাংস বিক্রয়কালে নুরুজ্জামান কসাইকে আটক করে পশু জবাই ও মাংসের মান নিয়ন্ত্রন আইন ২০১১ এর ২৪ (১) ধারায় তার ২০ হাজার টাকা অর্থদন্ড করেন এবং অবশিষ্ট প্রায় দুইমন মাংস মাটির নীচে পুঁতে ফেলা হয়। এসময় দৌলতপুর প্রাণীসম্পাদ কর্মকর্তা ডা. মো. আব্দুল মালেক উপস্থিত ছিলেন। অপরদিকে উপজেলার আদাবাড়িয়া গ্রামে সরকারী আদেশ অমান্য করে বৌভাত অনুষ্ঠান করে জনসমাগম ঘটানোর অভিযোগে একই ভ্রাম্যমান আদালত অভিযান চালিয়ে বরপক্ষের জালাল উদ্দিন নামে এক ব্যক্তির ১৮৬০ এর ২৯১ ধারায় ১০ হাজার টাকা অর্থদন্ড করেছেন ভ্রম্যমান আদালতের বিচারক ও নির্বাহী ম্যাজিষ্ট্রেট মো. আজগর আলী।

করোনাভাইরাস

স্পেনে হু হু  করে বাড়ছে মৃত্যু-আক্রান্ত

ঢাকা অফিস ॥ বিশ্বব্যাপী নভেল করোনাভাইরাসের প্রাদুর্ভাবের মধ্যে ইতালির পরে সবচেয়ে উপদ্রব হয়ে উঠছে ইউরোপের আরেক দেশ স্পেন। দেশটিতে গত ২৪ ঘণ্টায় ৩৯৪ জনের মৃত্যু হয়েছে, যেখানে আগের দিন মৃত্যু হয়েছিল ৩২৪ জনের। এই ভাইরাসে আক্রান্ত হয়ে স্পেনে মোট মৃতের সংখ্যা দাঁড়িয়েছে এক হাজার ৭২০ জনে। স্পেনের স্বাস্থ্য মন্ত্রণালয়ের তথ্য মতে, রোববার মৃত্যুর পাশাপাশি বেড়েছে নতুন রোগীও। এখন আক্রান্তের সংখ্যা দাঁড়িয়েছে ২৮ হাজার ৫৭২ জন, যেখানে শনিবার ছিল ২৪ হাজার ৯২৬ জন। আক্রান্তদের মধ্যে দুই হাজার ৫৭৫ জন সুস্থ হয়েছেন। এখনও হাসপাতালের আইসিইউতে আছেন এক হাজার ৭৮৫ জন। বিশ্বব্যাপী মহামারী আকার নেওয়া এই রোগ প্রতিরোধে প্রয়োজনীয় সব পদক্ষেপ নেওয়ার ঘোষণা দিয়েছেন স্পেনের প্রধানমন্ত্রী পেদ্রো সানচেজ। শনিবার দেশবাসীকে সতর্ক করে তিনি বলেছেন, “সবচেয়ে খারাপ সময় আসতে বাকি।” করোনাভাইরাসের বিস্তার ঠেকাতে গত ১৪ মার্চ স্পেন সরকার সারা দেশে ১৫ দিনের জরুরি অবস্থা জারি করে। তা আরও ১৫ দিন বাড়ানোর ভাবনা চলছে বলে রোববার বেশ কয়েক স্পেনিশ সংবাদমাধ্যম জানিয়েছে। নতুন করে নভেল করোনাভাইরাসে আক্রান্তের দিক দিয়ে খুব ভালো অবস্থায় নেই জার্মানিও। ইউরোপের প্রভাবশালী দেশটিতে গত ২৪ ঘণ্টায় এক হাজার ৯৪৮ জনের দেহে এই ভাইরাস সংক্রমণ ধরা পড়েছে। জার্মানির রোগ নিয়ন্ত্রণ সংস্থা রবার্ট কোচ ইনস্টিটিউটের তথ্য মতে, দেশটিতে করোনাভাইরাস আক্রান্তের সংখ্যা দাঁড়িয়েছে ১৮ হাজার ৬১০ জন। শনিবার আগের দিনের চেয়ে নতুন আক্রান্তের হার বেড়েছে ১২ শতাংশ। জার্মানিতে এই ভাইরাসে নতুন আটজনের মৃত্যুতে মোট মৃতের সংখ্যা দাঁড়িয়েছে ৫৫ জনে। সিএনএনের তথ্য মতে, করোনাভাইরাস মোকাবেলায় এখন সারা দেশে ‘লকডাউন’ ঘোষণার কথা ভাবছে জার্মান সরকার। গেল সপ্তাহে বাভেরিয়া ও সারল্যান্ড রাজ্যে লোকজনের চলাচলে বিধি-নিষেধ আরোপ করা হয়। পরবর্তী করণীয় নিয়ে রোববারই দিনের শেষভাগে রাজ্য সরকারগুলোর প্রধানদের সঙ্গে বসছেন জার্মান চ্যান্সেলর অ্যাঙ্গেলা মেরকেল।

যুক্তরাজ্যেও নভেল করোনাভাইরাস আক্রান্তের সংখ্যা হু হু করে বাড়ছে। দেশটিতে মোট আক্রান্তের সংখ্যা পাঁচ হাজার ছাড়িয়েছে। গত ২৪ ঘণ্টায় এক হাজারের বেশি নতুন রোগী শনাক্ত হয়েছে বলে সিএনএনের প্রতিবেদনে বলা হয়েছে। যুক্তরাজ্যে এই ভাইরাসে মৃত্যু হয়েছে ২৩৩ জনের। ফ্রান্সে একদিনে মৃত্যুর সংখ্যা শত ছাড়িয়েছে। দেশটির স্বাস্থ্য মন্ত্রণালয়েল তথ্য মতে, শনিবার পর্যন্ত দেশটিতে মোট ৫৬২ জনের মৃত্যু হয়েছে, যা আগের দিনের চেয়ে ১১২ জন বেশি। নভেল করোনাভাইরাসের কবলে পড়েছে যুক্তরাষ্ট্রের নিউ ইয়র্কও। ওই শহরে এরইমধ্যে এই ভাইরাসে আক্রান্ত হয়েছেন আট হাজার ১১৫ জন, মৃত্যু হয়েছে ৬০ জনের। এখন হাসপাতালে চিকিৎসাধীন আছেন এক হাজার ৪৫০ জন, তাদের অন্তত ৩৭০ জন আছেন নিবিড় পরিচর্যা কেন্দ্রে। আর নিউ ইয়র্ক রাজ্যে আক্রান্ত হয়েছেন ১২ হাজার ২৬০ জন, মৃত্যু হয়েছে ৭০ জনের। যুক্তরাষ্ট্রের স্টেটগুলোর মধ্যে সবচেয়ে খারাপ অবস্থা এখন এই নিউ ইয়র্কে।

এইচএসসি পরীক্ষা স্থগিত

ঢাকা অফিস ॥ বাংলাদেশেও প্রাণঘাতী নভেল করোনাভাইরাস ছড়াতে থাকায় ১ এপ্রিল থেকে শুরু হতে যাওয়া এবারের উচ্চ মাধ্যমিক (এইচএসসি) ও সমমানের পরীক্ষা স্থগিত করেছে সরকার। এপ্রিলের প্রথম দিকে পরীক্ষার নতুন তারিখ ঘোষণা করা হবে বলে রোববার শিক্ষা মন্ত্রণালয়ের এক সংবাদ বিজ্ঞপ্তিতে জানানো হয়েছে। বিশ্বজুড়ে ছড়িয়ে পড়া মহামারী নভেল করোনাভাইরাসে বাংলাদেশে দুজনের মৃত্যু হয়েছে। রোববার আরও তিনজনসহ এ ভাইরাসে মোট ২৭ জন সংক্রমিত হয়েছে। এইচএসসির উত্তরপত্রসহ অন্যান্য সরঞ্জাম বিতরণ কার্যক্রম স্থগিত করে সকালেই নোটিস জারি করে সবগুলো শিক্ষা বোর্ড। পরীক্ষা নেওয়ার অত্যবশকীয় এসব সরঞ্জাম ২২ থেকে ২৪ মার্চ পর্যন্ত বিতরণের কথা ছিল। তার আগে গত শনিবার এইচএসসি পরীক্ষার্থীদের প্রবেশপত্র বিতরণ কার্যক্রম আগামী ২৮ মার্চ পর্যন্ত স্থগিত করা হয়। আগামী ১ এপ্রিল থেকে ৪ মে পর্যন্ত এইচএসসির তত্ত্বীয় এবং ৫ থেকে ১৩ মের মধ্যে সব ব্যবহারিক পরীক্ষা শেষ করার সূচি নির্ধারিত ছিল। নভেল করোনাভাইরাসের প্রাদুর্ভাবে আতঙ্কের মধ্যে গত ১৬ মার্চ দেশের সব শিক্ষা প্রতিষ্ঠান আগামী ৩১ মার্চ পর্যন্ত বন্ধ ঘোষণা করে সরকার। ওইদিন এইচএসসি পরীক্ষা নিয়ে শিক্ষামন্ত্রী দীপু মনি জানিয়েছিলেন, এই পরীক্ষা শুরুর আগে এ বিষয়ে কী সিদ্ধান্ত নেওয়া হবে। ঢাকা শিক্ষা বোর্ডের এক কর্মকর্তা বলেন, সবগুলো শিক্ষা বোর্ডের চেয়ারম্যানদের নিয়ে গত বৃহস্পতিবার সভা হয়েছে। আন্তঃশিক্ষা বোর্ড সমন্বয় সাব-কমিটির ওই সভায় এইচএসসি পরীক্ষা পেছানোর বিষয়ে নীতিগত সিদ্ধান্ত হয়েছে। মন্ত্রণালয়ের অনুমোদনের পর আনুষ্ঠানিক ঘোষণা বাকি। এইচএসসির ঢাকা বোর্ডের বিভিন্ন পরীক্ষাকেন্দ্রে যারা ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা হিসেবে কাজ করবেন, তাদের নিয়ে গত ১৬ মার্চ শিক্ষা বোর্ডে মতবিনিময় সভা করার থাকলেও তা স্থগিত করা হয়েছে, এখনও ওই সভা হয়নি। শিক্ষামন্ত্রী দীপু মনির সভাপতিত্বে গত বুধবার এইচএসসি পরীক্ষা সংক্রান্ত আইন-শৃঙ্খলা কমিটির সভা হওয়ার কথা থাকলেও তা স্থগিত করা হয়।