সভাপতি আফতাব ॥ সম্পাদক নজরুল

মিরপুর উপজেলা সম্মিলিত নাগরিক সমাজের কমিটি গঠন

আমলা অফিস ॥ কুষ্টিয়ার মিরপুর উপজেলা সম্মিলিত নাগরিক সমাজের পুনাঙ্গ কমিটি গঠন করা হয়েছে। গতকাল শনিবার সকালে উপজেলা মুক্তিযোদ্ধা কমপ্লেক্সে ভবনের সভাকক্ষে আলোচনা সভা শেষে এ কমিটি ঘোষণা করা হয়। উপজেলা মুক্তিযোদ্ধা কামান্ডের সাবেক কমান্ডার ও যুদ্ধকালীন কমান্ডার আফতাব উদ্দিন খানকে সভাপতি ও উপজেলা মুক্তিযোদ্ধা কমান্ডের সাবেক কমান্ডার নজরুল করিমকে সাধারণ সম্পাদক করে ৪১ সদস্য বিশিষ্ট উপজেলা সম্মিলিত নাগরিক সমাজের পুনাঙ্গ কমিটি গঠন করা হয়। কমিটির অন্য সদস্যরা হলেন সহ-সভাপতি পৌর মেয়র হাজী এনামুল হক, পোড়াদহ ইউনিয়ন পরিষদের চেয়ারম্যান অধ্যক্ষ আনোয়ারুজ্জামান বিশ্বাস, যুগ্ম-সাধারণ সম্পাদক জেলা পরিষদের সদস্য আলহাজ্ব মহাম্মদ আলী জোয়ার্দ্দার, প্রেসক্লাবের সাবেক সভাপতি বাবলু রঞ্জন বিশ্বাস, অর্থ-সম্পাদক উপজেলা আওয়ামীলীগের সাবেক সাংগঠনিক সম্পাদক আব্দুল্লাহ-আল-মতিন লোটাস, প্রচার ও প্রকাশনা সম্পাদক প্রেসক্লাবের সাবেক আহ্বায়ক হুমায়ূন কবির হিমু, দপ্তর সম্পাদক প্রেসক্লাবের সাধারণ সম্পাদক রাশেদুজ্জামান রিমন, সহ-প্রচার সম্পাদক সুমন মাহমুদ, সহ-দপ্তর প্রেসক্লাবের সাবেক সভাপতি আছাদুর রহমান বাবু, সদস্য উপজেলা মুক্তিযোদ্ধা কমান্ডের সাবেক আহ্বায়ক মোশারফ হোসেন, সাবেক ডেপুটি কমান্ডার এনামুল হক বিশ্বাস, ডাঃ চাঁদ আলী, সাবেক সহকারী কমান্ডার আমজাদ হোসেন, মোহাম্মদ আলী, উপজেলা পরিষদের ভাইস-চেয়ারম্যান আবুল কাশেম জোয়ার্দ্দার, প্রেসক্লাবের সহ-সভাপতি কাঞ্চন কুমার হালদার, চিথলিয়া সাগরখালী ডিগ্রী কলেজের অধ্যক্ষ রবিউল ইসলাম, মিরপুর নাজমুল উলুম ফাযিল মাদ্রাসার অধ্যক্ষ মাওঃ সালেহ আহমেদ, সুলতানপুর সিদ্দিকীয়া মাদ্রাসার ভারপ্রাপ্ত অধ্যক্ষ মাওঃ আব্দুল মান্নান ফারুকী, চিথলিয়া মাধ্যমিক বিদ্যালয়ের প্রধান শিক্ষক আব্দুল্লাহেল বাকী, আমলা জাহানারা মাধ্যমিক বিদ্যালয়ের প্রধান শিক্ষক এনামুল ইসলাম, বাংলাদেশ সুইমিং ফেডারেশনের সাবেক যুগ্ম-সাধারণ সম্পাদক আমিরুল ইসলাম, মিরপুর মাধ্যমিক বালিকা বিদ্যালয়ের প্রধান শিক্ষক কাজী রোকনুজ্জামান, উপজেলা শিল্পকলা একাডেমির সাধারণ সম্পাদক আসাদুজ্জামান মিঠু, আলো সংস্থার নির্বাহী পরিচালক ফিরোজ আহাম্মেদ, প্রেসক্লাবের যুগ্ম-সাধারণ সম্পাদক মারফত আফ্রিদী, অর্থ সম্পাদক মজিদ জোয়ার্দ্দার, আমলা প্রেসক্লাবের সাধারণ সম্পাদক গোলাম কিবরিয়া মাসুম, সাংবাদিক মিলন উল্লাহ, শাহীন আলী, এস এম জামাল, আলম মন্ডল, উপজেলা শ্রমিকলীগের সাংগঠনিক সম্পাদক আশরাফুল আলম হীরা, পৌর যুবলীগের আহ্বায়ক হাসানুর রহমান খান তাপস, ব্যবসায়ী হাফিজুর রহমান, দলিল লেখক রফিকুল ইসলাম জোয়ার্দ্দার, মিষ্টি মৌ খামারে স্বত্তিধিকারী মামুন-অর-রশিদ, হেমা ফটোষ্ট্যাট’র স্বত্তাধিকারী ইসরাইল হোসেন সান্টু, উপজেলা যুবজোটের প্রচার সম্পাদক শরিফুল ইসলাম প্রমুখ।

মামলার ফাঁদে ফেলে একাধিক ব্যক্তির কাছ থেকে টাকা হাতিয়ে নেওয়ার অভিযোগ উঠেছে ঝিনাইদহে জুলেখার বিরুদ্ধে

সুলতান আল একরাম ॥ ঝিনাইদহের জুলেখা বেগম নামে এক মহিলার বিরুদ্ধে একাধিক ব্যক্তির নামে বিভিন্ন ধরণের মামলা করে সাধারণ মানুষের হয়রানি ও টাকা হাতিয়ে নেওয়ার অভিযোগ পাওয়া গেছে। বিভিন্ন তথ্য থেকে জানা যায় হামদহ এলাকার শেরে বাংলা সড়কের আলিয়া মাদ্রাসার পূর্বপাশে মৃত মফিজ মিয়ার স্ত্রী জুলেখা বেগম তার নিজের দুই ছেলের নামে কোর্টে ৫টি মামলা এবং থানায় ৪টি অভিযোগ ছাড়াও জমি সক্রান্ত, মারামারি ও যৌতুকের মামলাসহ বিভিন্ন ব্যক্তির নামে ৩০ থেকে ৩৫টি মামলার বাদি হয়ে মামলা করার খবর পাওয়া গেছে। কোন কোন মামলা থেকে বড় অংকের টাকা নিয়ে মিমাংসা করার খবরও জানা গেছে। জুলেখার ছেলে মুন্নার নামে যে মামলাটি করেন তার নং ঝিনাইদহ সিআর ৪৩৩/১৪।  এছাড়া একই এলাকার তোফাজ্জেল হোসেন, রাজিব, রাকিব, রামেলা খাতুন এদের নামে সিআর মামলা নং১০/২০১৮,১১৬২/১২। নাসির মালিতা, ফিরোজ মালিতা, সেলিম মালিতা ও পান্টু মিয়াসহ একাধিক ব্যক্তির নামে সি আর মামলা নং ৪০১/১৬ মিথ্যা মামলা দিয়ে হয়রানি করে আসছে তাছাড়া নাসির উদ্দীনের নামে অন্য আরও  মামলা রয়েছে যার নং সি আর ৫৩৬/২০১৭। শৈলকুপার নিত্তানন্দপুর সাপখোলা গ্রামের হাসমত আলির বিরুদ্ধে মিথ্যা বিবাহের কাবিন তৈরী করে  খোরপোশ এবং যৌতুকের মামলা দিয়ে হয়রানি করেছে যার মামলা নং ৪০/১০ঝিনাইদহ পারিবারিক আদালত। জুলেখা বেগমের ছেলে বলেন আমার মা একজন মামলাবাজ মহিলা সে তার জামাই নাসির উদ্দীন এবং বড় ছেলের ইন্ধোনে আমার নামে ৪টি মিথ্যা মামলাসহ বিভিন্ন ব্যক্তির নামে মামলা করে টাকা হাতিয়ে নেওয়ার চেষ্টা করে। মাসুদের নামে যে মামলা করেছে তার মধ্যে সিআর ৬৩৮/১৯, ৭৫/২০। এছাড়া আমার বাবার বাড়ির শৈলকুপা আশুর হাট এলাকার অধিকাংশ ব্যক্তির নামে একাধিক মামলা করে হয়রানি করে আসছে। এমনকি তার নিজের বাড়ি নিজে ভেঙ্গে সতিন এবং সতিনের ছেলে ও জামাইদের নামে মিথ্যা মামলা দিয়ে দীর্ঘদিন হয়রানি করে আসছে মামলা নং ঝিনাইদহ পিটিশন ২৯/২০২০। এই মামলাবাজ মহিলার জন্য এলাকাবাসী ও আত্মিয় স্বজন অতিষ্ট। সুষ্ঠু তদন্ত স্বাপেক্ষে এই মামলাবাজ মহিলার বিচার দাবি করেন এলাকাবাসী।

কুষ্টিয়া জেলা স্বর্ণশিল্পী সমিতির সাধারণ সভা

নিজ সংবাদ ॥ কুষ্টিয়া জেলা স্বর্ণশিল্পী সমিতির সাধারণ সভা অনুষ্ঠিত হয়েছে। সভায় প্রধান অতিথি ছিলেন আঞ্চলিক শ্রম দপ্তর কুষ্টিয়ার সহকারী পরিচালক সিরাজুল ইসলাম। বিশেষ অতিথি ছিলেন বাংলাদেশ জুয়েলার্স সমিতি কুষ্টিয়া জেলা শাখার সাধারণ  সম্পাদক কামাল আহমেদ করিম, সাংগঠনিক সম্পাদক সুভাষ রায়, কার্যনিবাহী  সদস্য প্রতাপ ঘোষ, কুষ্টিয়া জেলা স্বর্ণশিল্পী সমিতির সাবেক সভাপতি দুলাল চন্দ্র কর্মকার ও সমর রায়। সভায় সভাপতিত্ব করেন জেলা স্বর্ণশিল্পী সমিতির সভাপতি পলান বিশ্বাস। সভা পরিচালনা করেন জেলা স্বর্ণশিল্পী সমিতির সাধারণ সম্পাদক আনিসুর রহমান আনিস। কুষ্টিয়া জেলা স্বর্ণশিল্পী সমিতির আয়োজনে, শুক্রবার সকালে কুষ্টিয়া চেম্বার অব কমার্সের হল রুমে এ সাধারণ সভা অনুষ্ঠিত হয়। এ সময় জেলা স্বর্ণশিল্পী সমিতির অন্যান্য নেতৃবৃন্দ ও সদস্যবৃন্দ উপস্থিত ছিলেন।

 

গাংনীর ভবানীপুরে জনবসতি এলাকায় মুরগীর ফার্ম স্থাপনে পরিবেশ দূষণ

গাংনী প্রতিনিধি ॥ মেহেরপুরের গাংনী উপজেলার কাজীপুর ইউনিয়নের ভবানীপুর গ্রামে জনবসতি এলাকায় মুরগীর ফার্ম স্থাপন করা হয়েছে। ফলে পরিবেশ দূষণ হচ্ছে। বসবাসের অযোগ্য হয়ে পড়েছে জনবসতি এলাকা। জানা যায়, ভবানীপুর গ্রামের মৃত পালান শেখের ছেলে আনারুল ইসলাম জনবসতি এলাকায় কয়েক বছর যাবত মুরগীর ফার্ম স্থাপন করে মুরগী পালন করে আসছেন। ফলে ফার্মের আশে-পাশের অন্তত ২০টি পরিবারের লোকজন বসবাস করতে কষ্টের শিকার হচ্ছে। এ ব্যাপারে স্থানীয় ভাবে সালিসের মাধ্যমে মুরগীর ফার্ম সরিয়ে নেয়ার কথা থাকলেও অদ্যবদি ফার্ম সরিয়ে নেননি মালিক আনারুল ইসলাম। ফলে ভোগান্তি বেড়েই চলেছে। ওই এলাকায় বসবাসকারী আব্দুল জলিল, আব্দুর রহিম, গিয়াস উদ্দীন, জেসের আলী, রবিউল ইসলাম, কলম আলী, শওকত আলী, আব্দুর সাত্তার, নজরুল ইসলাম, আখের আলী, সাহারুল ইসলাম, নাহারুল ইসলাম, টুটুল হোসেন ও মাহাতাব আলীসহ আরো অনেকে ফার্মের দূর্গন্ধ থেকে বাঁচতে উপজেলা নির্বাহী অফিসারের বরাবর আবেদন করার প্রস্তুতি নিচ্ছেন।  এ ব্যাপারে ফার্ম মালিকের পরিবারের সদস্যরা জানান আমরা গাংনী উপজেলা পশু সম্পদ দপ্তর থেকে অনুমতি নিয়ে ফার্ম স্থাপন করেছি। মানুষের কষ্ট হলেও কিছু করার নেই। কাজীপুর ইউনিয়ন পরিষদের সদস্য আনারুল ইসলাম জানান এ বিষয়ে একটি সালিস বৈঠক বসেছিল। সে বৈঠকের সিদ্ধান্ত মোতাবেক ফার্ম মালিক আনারুল ইসলাম ৬ মাসের মধ্যে তার মুরগী ফার্ম অন্যত্রে সরিয়ে নেয়ার কথা ছিল। ৬ মাস পেরিয়ে গেলেও আজ পর্যন্ত ফার্ম সরিয়ে নিচ্ছেন না। তাই এটার একটি সুরাহা হওয়া উচিত। উপজেলা পশু সম্পদ কর্মকর্তা মোস্তফা জামান জানান ইউনিয়ন পরিষদের ট্রেড লাইসেন্স দেয়ার পর পশু দপ্তর থেকে অনুমতি দিয়েছে। জনবসতি এলাকায় কিভাবে মুরগীর ফার্ম স্থাপনের অনুমতি দেয়া হয়েছে এমন প্রশ্নের জবাবে উপজেলা পশু সম্পদ দপ্তর কর্মকর্তা মোস্তফা জানান, আমি যেহেতু নতুন এসেছি। আমার আগে দায়িত্বরত কর্মকর্তা থাকাকালিন অনুমতি দেয়া হয়েছিল। কিভাবে অনুমতি দিতে পেরেছেন তা আমি বলতে পারছিনা। তারপরও সমস্যাটি নিয়ে থানা পুলিশ দেখছে। গাংনী থানার ওসি ওবাইদুর রহমান জানান বিষয়টি পশু সম্পদ দপ্তর দেখার জন্য রয়েছে। তারপরও বিষয়টি খতিয়ে দেখা হবে।

দেশে নাজিরশাইল বলে কোনো ধান নেই, মিনিকেট চাল ও নেই – খাদ্যমন্ত্রী

ঢাকা অফিস ॥ খাদ্যমন্ত্রী সাধন চন্দ্র মজুমদার এমপি বলেছেন, ‘দেশে নাজিরশাইল বলে কোনো ধান নেই, মিনিকেট বলে কোনো চাল নেই। এগুলো সবই ব্যবসায়ীদের কারসাজি।’ তিনি বলেন, আমরা করোনাভাইরাস নিয়ে যতটা হুলুস্থুল তৈরি করছি এবং সচেতনতা তৈরির জন্য যে প্রচারণা চালাচ্ছি, নিরাপদ খাদ্যের ক্ষেত্রে অনুরূপ হুলুস্থুল করলে নিরাপদ খাদ্য পাওয়া সম্ভব হবে। শনিবার ফার্মগেট কৃষিবিদ ইনস্টিটিউশনে অনুষ্ঠিত ‘সেফ ফুড ফর অল : এ কমিটমেন্ট টুয়ার্ডস ডেভেলপমেন্ট বাংলাদেশ’ শীর্ষক সেমিনারে প্রধান অতিথির বক্তব্যে তিনি এসব কথা বলেন। ইন্টারন্যাশনাল বিজনেস ফোরাম অব বাংলাদেশ (আইবিএফবি) এ সেমিনারের আয়োজন করে। অনুষ্ঠানে সভাপতিত্ব করেন আয়োজক সংগঠনের সভাপতি হুমায়ুন রশিদ। খাদ্যমন্ত্রী বলেন, জাতির জনক বঙ্গবন্ধু বলেছিলেন, যারা খাদ্যে ভেজাল দেবে তাদের শাস্তি নিশ্চিত মৃত্যুদন্ড। আজ এত বছর পর এসে মানুষকে শিক্ষা দিতে হয় যে, ভেজাল খাওয়া যাবে না। এটা অত্যন্ত দুঃখজনক। তিনি প্রশ্ন রেখে বলেন, যে কৃষক ফসল ফলায় সে কি অপরাধ করেন? অপরাধ করেন যারা প্রসেসিং করেন এবং এর মধ্যে যারা ব্যবসা করেন। আমাদের দেশের অনেকে ৭/৮শ’ টাকা দিয়ে সিঙ্গাপুর, মালয়েশিয়ার জুস কেনেন। কিন্তু আমাদের দেশের জুসকে বিশ্বাস করেন না। যারা জুস তৈরি করেন তাদের বিশ্বাসযোগ্যতা অর্জন করতে হবে। মন্ত্রী বলেন, খাদ্যে ভেজালের জন্য শুধু সরকারকে দোষারোপ করলে হবে না। এজন্য সচেতনতা গড়ে তুলতে হবে। বিভাগ থেকে শুরু করে উপজেলা, ইউনিয়ন, ওয়ার্ড ও গ্রাম পর্যন্ত ভেজাল-কে না বলতে হবে। তিনি দুঃখ প্রকাশ করে বলেন, বাংলাদেশে যে মিষ্টি-কে আমরা এক নম্বর মিষ্টি বলে জানি সেই মিষ্টির কোনো গ্রেড নেই। যেখানে এ মিষ্টি তৈরি হয়, তা যদি একবার কেউ দেখতো তা হলে জীবনেও সে ওই মিষ্টি খেত না। তাকে একাধিকবার জরিমানা করা হয়েছে। তিনি বলেন, আমরা আটটি বিভাগে আধুনিক ল্যাবরেটরি করছি। খুব শিগগিরই আমরা এসব ল্যাবরেটরিতে খাদ্যের মান নিয়ন্ত্রণ করতে পারব। এছাড়া ভেজাল, সন্ত্রাস ও মাদক সম্পর্কে প্রাথমিক বিদ্যালয়ের শিক্ষক ও মসজিদের ইমামদের বক্তব্য দেয়ার জন্য নির্দেশনা দেয়া হয়েছে বলে জানান মন্ত্রী। অনুষ্ঠানে বিশেষ অতিথির বক্তব্য রাখেন কনজুমারস অ্যাসোসিয়েশন অব বাংলাদেশের চেয়ারম্যান গোলাম রহমান। সেমিনারে মূল প্রবন্ধ উপস্থাপন করেন হাঙ্গার ফ্রি বাংলাদেশের কান্ট্রি ডিরেক্টর আতাউর রহমান। সেমিনারে আলোচনায় অংশ নেন কেআইবি’র সেক্রেটারি জেনারেল কৃষিবিদ খায়রুল আলম প্রিন্স, কৃষি মন্ত্রণালয়ের সাবেক সচিব এম আনোয়ার ফারুক, নিরাপদ খাদ্য বিষয়ক বিশেষজ্ঞ মেজর জেনারেল (অব.) সালাউদ্দিন মিয়াজী ও এসিআই এগ্রি বিজনেসের সিইও ড. এফএইচ আনসারী।

মিরপুরে বলিদাপাড়া পলিটেকনিক ইনস্টিটিউটে মতবিনিময় সভা অনুষ্ঠিত

মিরপুর প্রতিনিধি ॥ কুষ্টিয়ার মিরপুর উপজেলার বলিদাপাড়া পলিটেকনিক ইনস্টিটিউট’এ মতবিনিময় সভা অনুষ্ঠিত হয়েছে। গতকাল শনিবার দুপুরে পলিটেকনিক ইনস্টিটিউটে এ মতবিনিময় সভা অনুষ্ঠিত হয়। উক্ত আলোচনা সভায় প্রধান অতিথি হিসাবে উপস্থিত ছিলেন জাসদ কেন্দ্রীয় কমিটির সদস্য ও উপজেলা জাসদের সাধারন সম্পাদক আহাম্মদ আলী। অনুষ্ঠানে বিশেষ অতিথি হিসাবে উপস্থিত ছিলেন, বলিদাপাড়া সরকারী প্রাথমিক বিদ্যালয় পরিচালনা পর্ষদের সভাপতি মোঃ আব্দুল খালেক, অধ্যক্ষ মোঃ হাসানুজ্জামান, মশান বাজারের বিশিষ্ট চিকিৎসক ডাঃ মাসুদ রানা। এছাড়াও উপস্থিত ছিলেন অত্র প্রতিষ্ঠানের শিক্ষক কর্মচারীবৃন্দ। সভাপতিত্ব করেন অত্র প্রতিষ্ঠানের পরিচালনা পর্ষদের সভাপতি মোঃ আলমগীর হোসেন।

মিরপুরে হাজী কল্যাণ পরিষদের বার্ষিক সমাবেশ

আছাদুর রহমান বাবু ॥ কুষ্টিয়ার মিরপুরে হাজী কল্যাণ পরিষদের বার্ষিক সমাবেশ অনুষ্ঠিত হয়েছে। গতকাল শনিবার সকালে উপজেলা পরিষদ মিলনায়তনে এ সমাবেশ অনুষ্ঠিত হয়। উপজেলা হাজী কল্যাণ পরিষদের সভাপতি হাজী আব্দুল্লাহেল কাফি’র সভাপতিত্বে অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথি ছিলেন উপজেলা আওয়ামীলীগের সভাপতি আলহাজ্ব অ্যাডঃ আব্দুল হালিম। এতে বিশেষ অতিথি ছিলেন উপজেলা পরিষদের চেয়ারম্যান আলহাজ্ব কামারুল আরেফিন, পৌর মেয়র হাজী এনামুল হক, মিরপুর থানার অফিসার ইনচার্জ আবুল কালাম। প্রধান আলোচক ছিলেন ইসলামী বিশ্ববিদ্যালয়ের আল কুরআন এন্ড ইসলামিক স্ট্যাডিজ বিভাগের অধ্যাপক ডঃ আ ব ম ছিদ্দিকুর রহমান আশ্রাফী। উপজেলা হাজী কল্যাণ পরিষদের সাধারণ সম্পাদক হাজী আব্দুস সালাম ও প্রচার সম্পাদক হাজী আছাদুর রহমান বাবু’র যৌথ পরিচালনায় এ সময়ে উপজেলা হাজী কল্যাণ পরিষদের সহকারী ধর্ম বিষয়ক সম্পাদক হাজী মুফতি হাবিবুল্লাহ, ফুলবাড়ীয়া ইউনিয়ন হাজী কল্যাণ পরিষদের সভাপতি হাজী মুসফিকুর রহমান কালু গাজী, সদরপুর ইউনিয়ন হাজী কল্যাণ পরিষদের সভাপতি হাজী হামিদুল হক, কুর্শা ইউনিয়ন হাজী কল্যাণ পরিষদের সভাপতি হাজী মোহাম্মদ আলী, চিথলিয়া ইউনিয়ন হাজী কল্যাণ পরিষদের সাধারণ সম্পাদক হাজী রিয়াস্তুল বারী বক্তব্য রাখেন। বার্ষিক আয়-ব্যায়ের প্রতিবেদন পেশ করেন উপজেলা হাজী কল্যাণ পরিষদের অর্থ-সম্পাদক হাজী আনোয়ার হোসেন। উপজেলা জাসদের সভাপতি হাজী মহম্মদ শরীফ, জেলা পরিষদের সদস্য আলহাজ্ব মহাম্মদ আলী জোয়ার্দ্দার, সাবেক ইউপি চেয়ারম্যান হাজী আব্দুল জলিল, উপজেলা হাজী কল্যাণ পরিষদের উপদেষ্টা আলহাজ্ব জহুরুল ইসলাম, আলহাজ্ব ফজলুল হক, সহ-সভাপতি আলহাজ্ব শেখ আবুল হাশেম, আলহাজ্ব হাফেজ মাওলানা আব্দুল মতিন, ধর্মীয় সম্পাদক আলহাজ্ব আব্দুল মান্নান, সহ-প্রচার সম্পাদক আলহাজ্ব জাহাঙ্গীর আলম, পৌর হাজী কল্যাণ পরিষদের সভাপতি হাজী আশরাফ আলী খান প্রমুখ উপস্থিত ছিলেন।

হাজ্বী মোহাম্মদ আলী স্মৃতি ফুটবল টুর্নামেন্ট’র ফাইনাল খেলা ও পুরস্কার বিতরণ

নিজ সংবাদ ॥ একতা পল্লী কল্যান সমিতির আয়োজনে কুষ্টিয়া সদর উপজেলার পিয়ারপুর হাইস্কুল মাঠে হাজ্বী মোহাম্মদ আলী স্মৃতি ফুটবল টুর্নামেন্ট’র ফাইনাল খেলা ও পুরস্কার বিতরণ অনুষ্ঠিত হয়েছে। গতকাল বিকালে ফাইনাল খেলায় অংশগ্রহন করে ভায়না রুহুল ক্দ্দুুস তালুকদার একাডেমী  বনাম রামদিয়া সবুজ সাথী একাডেমী। খেলায় ৮-১ গোলে ভায়না রুহুল কুদ্দুস তালুকদার একাডেমী  জয়লাভ করেন। খেলা পরিচালনা করেন নাজমুল হোসেন ইমদাদ, লিটন আলী, শফিকুল ইসলাম। উক্ত পুরস্কার বিতরনী অনুষ্ঠানে একতা পল্লী কল্যান সমিতির সভাপতি আলহাজ্ব শিহাব উদ্দিনের সভাপতিত্বে প্রধান অতিথি হিসেবে উপস্থিত ছিলেন  কুষ্টিয়া ৩ (সদর) আসনের সাবেক সংসদ সদস্য বীর মুক্তিযোদ্ধা আলহাজ্ব অধ্যক্ষ সোহরাব উদ্দিন। অনুষ্ঠানের প্রধান পৃষ্ঠপোষক আলহাজ্ব আকলিমা শিহাব। বিশেষ অতিথি হিসেবে উপস্থিত ছিলেন বীর মুক্তিযোদ্ধা শহিদুল হক, আব্দালপুর ইউনিয়নের সাবেক চেয়ারম্যান লিয়াকত আলী বিশ্বাস, স্থানীয় আওয়ামীলীগ নেতা শেখ সিরাজ। এসময় প্রধান অতিথি তার বক্তব্যে বলেন- খেলাধুলা মানুষকে সুস্থ্য রাখে। তাই সকলকে ক্রীড়ামূখি হওয়ার আহবান জানান। সভাপতি আলহাজ্ব শিহাব উদ্দিন বলেন, ১৪ বছর আগে শুরু হওয়া হাজ্বী মোহাম্মদ আলী স্মৃতি টূনামেন্ট’র এর ১২তম আসরের সফল করায় শেষ করা হলো। এই সফতার পেছনে একতা পল্লী কল্যান সমিতির সকল সদস্যদের অবদান রয়েছে। এই টূর্নামেন্ট প্রতি বছরই অনুষ্ঠিত হবে বলেও আশা ব্যক্ত করেন। তিনি আরও বলেন, খেলাধুলা মাদক ও সন্ত্রাসী কর্মকান্ডকে দুরে রাখে। তাই বেশি বেশি করে খেলাধুলা করার জন্য যুব সমাজের প্রতি আহবান জানান। অনুষ্ঠানটি পরিচালনা করেন একতা পল্লী কল্যান সমিতির সাধারণ সম্পাদক শিপন বিশ্বাস। এছাড়াও উপস্থিত ছিলেন ওয়ার্ড সদস্য মনির উদ্দিন, মহসিন আলী, ইমদাদ, জাকির, একতা পল্লী কল্যান সমিতির সিনিয়র সহ সভাপতি কামাল উদ্দিন, সহ সভাপতি আশরাফুল ইসলাম, যুগ্ম সাধারণ সম্পাদক মোহিদুল হাসান, ক্রীড়া সম্পাদক হোসেন আলী, সদস্য মনিরুল ইসলাম, শিপন, বিপুল হোসেন, শাহানুর, জীবন, মুস্তাক, নুরুল ইসলাম, এরশাদ প্রমূখ। উক্ত খেলার মিডিয়া পার্টনার হিসেবে ছিলো দৈনিক সময়ের কাগজ। খেলায় বিজয়ী ও রানার্স আপ দলের খেলোয়াড়দের ট্রফি ও প্রাইজমানি প্রদান করা হয়।

মেহেরপুরে সাংবাদিক পোলেনের বাড়িতে দুর্বৃত্তদের হামলা

মেহেরপুর প্রতিনিধি ॥ বাংলাদেশ প্রতিদিন পত্রিকার মেহেরপুর প্রতিনিধি মাহবুবুল হক পোলেনের বাড়িতে হামলা চালানো হয়েছে। গত শুক্রবার রাত সোয়া ১০টার দিকে মেহেরপুর জেলা শহরের কাঁসারী পাড়ার পোলেনের বাসভবনে দুর্বৃত্তরা হামলা চালায়। এসময় পোলেন বাড়ি ছিলেন না। সাংবাদিক পোলেন জানান রাতে আমার বাড়ির গেটে ৩-৪ জনের একটি দুর্বৃত্তদল হামলা চালিয়ে বাড়ির ভিতরে প্রবেশ করার চেষ্টা করে। এসময় পরিবারের সদস্যরা চিৎকার দিলে,তারা পালিয়ে যায়। মেহেরপুর সদর থানার ওসি শাহ দারা জানান পুলিশের একটিদল ঘটনাস্থল পরিদর্শন করেছে। হামলাকারীদের চিহ্নিত করে আটকের চেষ্টা অব্যাহত রয়েছে।

অভিযোগের তীর নিহতের স্বামী, দালাল ও ক্লিনিক মালিকের দিকে

কুষ্টিয়ার পদ্মা প্রাইভেট হাসপাতালে গৃহবধুর মৃত্যুর ঘটনায় মামলার প্রস্তুতি

নিজ সংবাদ ॥ কুষ্টিয়ায় ভূল অপারেশনে নিহত গৃহবধু ফাতেমা খাতুন  রেশমার নিহতের ঘটনায় মামলার প্রস্তুতি নিচ্ছে তার পরিবার। রেশমার মা রঙ্গিলা খাতুন দেশের বাইরে অবস্থান করায় সিদ্ধান্ত নিতে বিলম্ব হয়েছে জানিয়ে ইতিমধ্যে মডেল থানা পুলিশের সাথে মামলার বিষয়ে কথা বলেছে। নিহতের মা রঙ্গিলা খাতুনের অভিযোগ, ফাতেমা খাতুন  রেশমা ও আব্দুর রশিদ একে অপরকে ভালবাসতো, দুই পরিবারের সম্মতিতে তাদের বিয়ে দেওয়া হয়। বিয়ের পর থেকে ফাতেমা খাতুন  রেশমার শাশুড়ি যৌতুকের জন্য শারিরীক ও মানসিক নির্যাতন চালাতো। আব্দুর রশিদের সাথে ফাতেমার বিয়ের আগে আমরা কেউ বুঝতে পারিনি আব্দুর রশিদ মাদকাসক্ত। বুঝতে পারার পরেও মেয়ের সংসার আর সুখের কথা চিন্তা করে সব নির্যাতন সহ্য করে গেছি। আমি পরিবার  ছেড়ে বিদেশে হাড়ভাঙ্গা পরিশ্রম করে টাকা উপার্জন করেছি শুধুমাত্র আমার এই মেয়ে আর একটা ছেলের সুখের কথা চিন্তা করে। নিজের রক্ত পানি করে উপার্জন করা টাকা প্রত্যেক মাসে পাঠিয়েছি ওদের সুখের কথা চিন্তা করে। কিন্তু ওদের চাহিদার কাছে আমার সাধ্যের সবটুকু  দেওয়ার পরেও ওদের মন ভরাতে পারলাম না। আমার মেয়েটাকে  মেরে ফেললো। ফাতেমার মায়ের অভিযোগ আব্দুর রশিদ নেশায় আসক্ত। আমি বিদেশ থেকে যে টাকা ওদের কাছে পাঠাতাম তা সবটাই  নেশা করে শেষ করে দিতো। এমনও মাস গেছে মাসে দুই থেকে তিনবার টাকা পাঠিয়েছি, তারপরেও ওরা আমার মেয়েটাকে মেরে  ফেললো। আমি আমার মেয়ে হত্যার বিচার চাই। অভিযোগ উঠেছে, ফাতেমার স্বামী আব্দুর রশিদ তার মা তহুরা খাতুন, তার নিকট আত্বীয় নগর সাঁওতা গ্রামের মোঃ আলালের ছেলে মোঃ জালাল, পরিকল্পিতভাবে কুষ্টিয়া শহরের পেয়ারাতলা এলাকার পদ্মা প্রাইভেট হাসপাতালের মালিক দিলওয়ার হাসানের সাথে যোগসাজেশে ওই হাসপাতালের অপারেশন থিয়েটারে ফাতেমাকে পরিকল্পিতভাবে হত্যা করে। ঘটনার পর  থেকে অভিযুক্তরা পলাতক রয়েছে। শুধু তাই নয় ঐদিন পদ্মা প্রাইভেট হাসপাতালে কোন ডাক্তার সিজারিয়ান অপারেশন করেছিলো, ফাতেমার ডায়াগনষ্টিক পরীক্ষা নিরীক্ষার কাগজপত্র সবকিছু সরিয়ে  ফেলা হয়েছে। নিহতের পরিবারের অভিযোগ পদ্মা প্রাইভেট হাসপাতালের অপারেশন থিয়েটারে ঠান্ডা মাথায় ফাতেমাকে হত্যা করা হয়েছে, যে হত্যার নীল নকশা আগে থেকেই করেছিলো ফাতেমার স্বামীসহ তার সহযোগিরা। শুধু তাই নয় ফাতেমাকে রাজশাহী নেওয়া হয়েছিলো হত্যার নাটকটা পরিপূর্ণ করার জন্য যাতে কোন সন্দেহ না থাকে। ফাতেমা মারা গেলে তার লাশ ময়নাতদন্ত ছাড়া দাফনের জন্য  তোড়জোড় শুরু করে ফাতেমার স্বামী আব্দুর রশিদ এবং ময়নাতদন্ত ছাড়াই ফাতেমার লাশ তারা দাফন সম্পন্ন করে। ফাতেমার মা সৌদি আরব থেকে বার বার লাশ ময়নাতদন্তের কথা বললেও আব্দুর রশিদ ও তার সহযোগিরা ময়নাতদন্ত ছাড়াই লাশ দাফন করে। চলতি মাসের ৯ মার্চ এই ঘটনার পর ফাতেমার মা রঙ্গিলা খাতুন ১২ মার্চ দেশে আসেন।  দেশে আসার পর তিনি মামলার প্রস্তুতি নেন বলে জানান।

প্রয়োজন হলে শিক্ষা প্রতিষ্ঠান বন্ধ করে দেয়া হবে – ওবায়দুল কাদের

ঢাকা অফিস ॥ দেশে করোনাভাইরাস পরিস্থিতিকে ‘স্বাভাবিক’ উল্লেখ করে আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক ওবায়দুল কাদের বলেছেন, পরিস্থিতি বিবেচনা করে শিক্ষা প্রতিষ্ঠান বন্ধসহ সরকার নানা পদক্ষেপ নেবে। শনিবার রাজধানীতে দলের কেন্দ্রীয় কার্যালয়ে সমসাময়িক বিষয়ে ব্রিফিংকালে সাংবাদিকদের এ কথা বলেন তিনি। খবর ইউএনবির। ওবায়দুল কাদের বলেন, করোনাভাইরাস পরিস্থিতি মোকাবিলায় সরকার প্রয়োজনীয় সব প্রস্তুতি গ্রহণ করেছে। পরে করোনাভাইরাস বিষয়ক সচেতনতামূলক লিফলেট বিতরণ করেন সড়ক পরিবহন ও সেতুমন্ত্রী কাদের। প্রসঙ্গত, করোনাভাইরাস থেকে সৃষ্ট প্রাণঘাতী ‘কোভিড-১৯’ রোগে আক্রান্ত হয়ে বিশ্বব্যাপী মৃতের সংখ্যা বেড়ে দাঁড়িয়েছে ৫ হাজার ৪৩৬ জনে। ওয়ার্ল্ডওমিটার্সের তথ্যানুসারে, সারা বিশ্বে শনিবার পর্যন্ত এ রোগে বিশ্বব্যাপী ১ লাখ ৪৫ হাজার ৮১০ জন আক্রান্ত হয়েছেন। তাদের মধ্যে ৭২ হাজার ৫৩১ জন পুরোপুরি সুস্থ হয়ে উঠেছেন। এছাড়া ৬৭ হাজার ৮৪৩ জন বর্তমানে চিকিৎসাধীন রয়েছেন। বাংলাদেশসহ বিশ্বের ১৪৫টি দেশ ও অঞ্চলে করোনাভাইরাস ছড়িয়ে পড়েছে। করোনাভাইরাসের প্রাদুর্ভাবকে ‘বৈশ্বিক মহামারি’ হিসেবে ঘোষণা করেছে বিশ্ব স্বাস্থ্য সংস্থা (ডবি¬উএইচও)।

করোনা ভাইরাস বিষয়ে সচেতনতায় কুষ্টিয়ায় লিফলেট বিতরণ

নিজ সংবাদ ॥ কুষ্টিয়ায় করোনা ভাইরাস বিষয়ে সচেতন করতে গণমানুষের মাঝে লিফলেট বিতরণ করা হয়েছে। গতকাল শনিবার সকালে বাংলাদেশ জাতীয় মানবাধিকার সমিতি কুষ্টিয়া জেলা শাখার উদ্যোগে সদর হাসপাতাল প্রাঙ্গণ, মজমপুর বাসস্ট্যান্ড, শিক্ষা প্রতিষ্ঠান, ব্যবসা প্রতিষ্ঠান এবং বিভিন্ন অফিসে ও  দূরপাল্লার বাসের যাত্রীদের মাঝে এ লিফলেট বিতরণ করা হয়। হাসপাতাল চত্বরে লিফলেট বিতরণ কার্যক্রমের উদ্বোধনী অনুষ্ঠানে উপস্থিত ছিলেন কুষ্টিয়া জেনারেল হাসপাতালের পরিচালক ডাঃ মোসাঃ নুরুন-নাহার বেগম, কুষ্টিয়া  প্রেসক্লাবের সাধারণ সম্পাদক আনিসুজ্জামান ডাবলু, আবাসিক মেডিকেল অফিসার ডাঃ তাপস কুমার সরকার, ডাঃ আবু সালেহ মোঃ মুসা কবির, ডাঃ হোসেন ঈমাম, কুষ্টিয়া প্রেসক্লাবের প্রচার প্রকাশনা ও সাংস্কৃতিক সম্পাদক তৌহিদী হাসান শিপলু, বাংলাদেশ জাতীয় মানবাধিকার সমিতি কুষ্টিয়া জেলা শাখার সভাপতি জান্নাতুল ফেরদৌস জিনিয়া, সাধারণ সম্পাদক শাহারিয়া ইমন রুবেলসহ সংগঠনের নেতৃবৃন্দ। এসময় অতিথিবৃন্দ বলেন, দেশে করোনা ভাইরাস আক্রান্ত রোগী সনাক্তের পর  থেকে আতঙ্কে ভীত সন্ত্রস্ত হয়ে পড়েছে সাধারণ মানুষ। কেউ কেউ এই ভাইরাসকে ব্যবসার মাধ্যম হিসেবে নিয়েছে। এত কিছু চিন্তা না করে শুধু মাত্র সচেতনতার মাধ্যমেই ভাইরাস  থেকে বাঁচা সম্ভব। অনাকাঙ্খিত চিন্তা ভাবনা ও মানুষকে সচেতন করতে আমাদের এই আয়োজন। বাংলাদেশ জাতীয় মানবাধিকার সমিতি কুষ্টিয়া জেলা শাখার সভাপতি জান্নাতুল ফেরদৌস জিনিয়া ও সাধারণ সম্পাদক শাহারিয়া ইমন রুবেল জানান, এ পর্যন্ত আমরা ৩ হাজার লিফলেট বিতরণ করেছি। আমাদের এধরনের কার্যক্রম অব্যাহত থাকবে। এদিকে কুষ্টিয়া জেলা প্রশাসনের উদ্যোগে করোনা ভাইরাস প্রতিরোধে প্রস্তুতিমূলক সভা অনুষ্ঠিত হয়েছে।

পিপুলবাড়ীয়া মাধ্যমিক বিদ্যালয়ে ‘আলহাজ্ব বশির আহম্মেদ অডিটোরিয়াম’র ভিত্তিপ্রস্তর স্থাপন

আমলা অফিস ॥ কুষ্টিয়ার দৌলতপুরে বিশিষ্ট ঠিকাদারী প্রতিষ্ঠান ওয়েস্টার্ন ইঞ্জিনিয়ারিং প্রাইভেট লিমিটেড এর ব্যবস্থাপনা পরিচালক আলহাজ্ব বশির উদ্দিন আহম্মেদ এর নামে ‘আলহাজ্ব বশির আহম্মেদ অডিটোরিয়াম’ ভিত্তিপ্রস্তর স্থাপন করা হয়েছে। গতকাল শনিবার সকালে উপজেলার পিপুলবাড়ীয়া মাধ্যমিক বিদ্যালয়ের আয়োজনে ওয়েস্টার্ন ইঞ্জিনিয়ারিং প্রাইভেট লিমিটেড এর অর্থায়নে এ অডিটোরিয়াম’র ভিত্তিপ্রস্তর স্থাপন করা হয়। এতে ওয়েস্টার্ন ইঞ্জিনিয়ারিং প্রাইভেট লিমিটেড এর ব্যবস্থাপনা পরিচালক আলহাজ্ব বশির উদ্দিন আহম্মেদের সভাপতিত্বে প্রধান অতিথি হিসাবে ভিত্তিপ্রস্তর স্থাপন করেন কুষ্টিয়া-১ (দৌলতপুর) আসনের সংসদ সদস্য আ.কা.ম. সরোয়ার জাহান বাদশা এমপি। অনুষ্ঠানে বিশেষ অতিথির বক্তব্য রাখেন দৌলতপুর উপজেলা পরিষদের চেয়ারম্যান এজাজ আহম্মেদ মামুন, জেলা শিক্ষা অফিসার জায়েদুর রহমান, পিপুলবাড়ীয়া মাধ্যমিক বিদ্যালয়ের প্রধান শিক্ষক আরজুল্লাহ, দৌলতপুর উপজেলা আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক এ্যাড. শরিফ উদ্দিন রিমন, উপজেলা মাধ্যমিক শিক্ষা অফিসার সরদার আবু সালেহ্, মহিলা ভাইস চেয়ারম্যান সোনালী খাতুন আলেয়া, খলিসাকুন্ডি ডিগ্রী কলেজের অধ্যক্ষ ড. মোফাজ্জেল হক, উপজেলা আওয়ামী লীগের সাবেক যুগ্ম-সাধারণ সম্পাদক সরদার তৌহিদুল ইসলাম, সাবেক তথ্য ও গবেষণা সম্পাদক টিপু নেওয়াজ, আদাবাড়িয়া ইউনিয়ন পরিষদের সাবেক চেয়ারম্যান আব্দুল হামিদ, বীর মুক্তিযোদ্ধা হায়দার আলী, খলিসাকুন্ডি ইউনিয়ন পরিষদের চেয়ারম্যান সিরাজুল বিশ্বাস, আড়িয়া ইউনিয়ন পরিষদের চেয়ারম্যান সাঈদ আনসারী বিপ্লব, বিশিষ্ট আওয়ামী লীগ নেতা রুহুল আমিন, দৌলতপুর উপজেলা যুবলীগের সাবেক যুগ্ম-আহবায়ক জাহাঙ্গীর আলম প্রমুখ। অনুষ্ঠানে আরো বক্তব্য রাখেন অত্র বিদ্যালয়ের প্রধান শিক্ষক আরোজুল ইসলাম, বিদ্যালয়ের ম্যানেজিং কমিটির সভাপতি বেনজির আহমেদ বাবু খান, বিদ্যালয়ের প্রতিষ্ঠাতা মঈনুল মালিথা, ইউনিয়ন পরিষদ সদস্য বেদালী মন্ডল, সাবেক সেনা সদস্য বখতিয়ার খানসহ সুশীল সমাজের প্রতিনিধিগণ। পরে বিদ্যালয় থেকে এস.এস.সি পরীক্ষায় গোল্ডেন এ প্লাস নিয়ে উন্নীত তিন শিক্ষার্থীকে ওয়েস্টার্ন ইঞ্জিনিয়ারিং প্রাইভেট লিমিটেডের ব্যবস্থাপনা পরিচালক আলহাজ্ব বশির আহমেদ এর পক্ষ  থেকে ল্যাপটপ প্রদান করা হয়। উল্লেখ্য, ঠিকাদারী প্রতিষ্ঠান ওয়েস্টার্ন ইঞ্জিনিয়ারিং প্রাইভেট লিমিটেডের ব্যবস্থাপনা পরিচালক আলহাজ্ব বশির উদ্দিন আহম্মেদ দীর্ঘদিন ধরেই এই অঞ্চলে শিক্ষা বিস্তারের জন্য গুরুত্বপূর্ন অবদান রাখছেন। তিনি নিয়মিত বিভিন্ন বিদ্যালয়ে ভবন, অডিটোরিয়াম, বিদ্যালয়ের ফটক, কম্পিউটার ল্যাব, আইসিটি ল্যাব, প্রশাসনিক ভবন, শিক্ষার্থীদের খেলাধুলার বিভিন্ন সামগ্রী বিতরণ করে আসছেন। সেই সাথে আলহাজ্ব বশির উদ্দিন আহম্মেদ তার প্রতিষ্ঠানে জেলার হাজারো বেকার যুবকদের চাকুরীর সুযোগ দিয়ে কর্মসংস্থান সৃষ্টি করছেন। এবং বিভিন্ন সামাজিক ও ধর্মীয় প্রতিষ্ঠানে নিয়মিত আর্থিক সহায়তা করে আসছেন। এছাড়া তিনি একজন মিডিয়া বান্ধব ব্যাক্তিত্ব হিসাবে পরিচিত। বিভিন্ন প্রেসক্লাবে তিনি এসি, কম্পিউটারসহ বিভিন্ন সামগ্রী বিতরণ করে আসছেন।

সভাপতি তোফাজ্জেল হোসেন ॥ সম্পাদক জহুরুল ইসলাম

নবনাট্য সংঘ কাঞ্চনপুর ইউনিয়ন শাখার কমিটি গঠন

কুষ্টিয়ায় নবনাট্য সংঘ কাঞ্চনপুর ইউনিয়ন শাখার কমিটি গঠন করা হয়েছে। গত শুক্রবার বিকেলে কুষ্টিয়া সদর উপজেলার  কাঞ্চনপুরের রাতুলপাড়ার নফেল শাহের মাজার প্রাঙ্গণে অনুষ্ঠিত এই আলোচনা সভা ও কমিটি গঠন অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথি ছিলেন নবনাট্য সংঘ কুষ্টিয়া শাখার আহ্বায়ক সাংবাদিক হাসিবুর রহমান রিজু। অতিথি ছিলেন  পল্লী উন্নয়ন বোর্ড বিআরডিবি ইউসিসি’র চেয়ারম্যান ও নাগরিক পরিষদের চেয়ারম্যান সাইফুদ্দৌলা তরুণ, জিয়ারখী ইউনিয়ন পরিষদের সাবেক চেয়ারম্যান ও আওয়ামীলীগ নেতা আনিসুর রহমান ঝন্টু, বাংলাদেশ মাদক প্রতিরোধ কমিটি কুষ্টিয়া জেলা শাখার সহ-সভাপতি ও সাফের নির্বাহী পরিচালক মীর আব্দুর রাজ্জাক, নবনাট্য সংঘের কুষ্টিয়া জেলা শাখার যুগ্ম আহ্বায়ক এম সোহাগ হাসান, কুষ্টিয়া জেলা মাদক প্রতিরোধ কমিটির সাংগঠনিক সম্পাদক শাহারিয়া ইমন রুবেল, শরিফুল ইসলাম, সদর উপজেলা মাদক প্রতিরোধ কমিটির সভাপতি নজরুল ইসলাম প্রধান, সাধারণ সম্পাদক জিল্লুর রহমান, হরিপুর ইউনিয়ন শাখা মাদক প্রতিরোধ কমিটির সাধারণ সম্পাদক প্রকৌশলী জুয়েল রানা, নবনাট্য সংঘ আলামপুর শাখার সাধারণ সম্পাদক কবির বকুল, নবনাট্য সংঘ হরিপুর শাখার সভাপতি ফরিদ হোসেন, সহ-সভাপতি মানিক উদ্দিন, পোড়াদহ ইউনিয়ন শাখা মাদক প্রতিরোধ কমিটির সভাপতি ডাঃ করিম উদ্দিন, নবনাট্য সংঘ জগতি শাখার সদস্য আরিফুল ইসলাম, কাঞ্চনপুর ইউনিয়ন শাখার নবনাট্য সংঘের সদস্য সেকেন্দার আলী ও ফজলুল করিম প্রমুখ। আলোচনা সভা শেষে নবনাট্য সংঘ কুষ্টিয়া শাখার আহ্বায়ক হাসিবুর রহমান রিজু ও যুগ্ম আহ্বায়ক এম সোহাগ হাসান ২১ সদস্য বিশিষ্ঠ নবনাট্য সংঘ কাঞ্চনপুর ইউনিয়ন শাখার কমিটি ঘোষনা করেন। সভাপতি তোফাজ্জেল হোসেন, সহ-সভাপতি সাহেব আলী, সহ-সভাপতি ফজলুল হক, সহ-সভাপতি জসিম উদ্দিন, সাধারণ সম্পাদক জহুরুল ইসলাম, সাংগঠনিক সম্পাদক খোরশেদ আলম, অর্থ সম্পাদক লাহরী হোসেন। আগামী ১৫ দিনের মধ্যে পূর্ণাজ্ঞ কমিটি করার নির্দেশ দেওয়া হয়। আলোচনা সভা ও কমিটি গঠন করার পরে এক মনোজ্ঞ সাংস্কৃতিক অনুষ্ঠান, বনভোজন ও নাটক প্রদর্শন করা হয়। সংবাদ বিজ্ঞপ্তি

 

কুষ্টিয়ায় র‌্যাবের অভিযানে গাঁজাসহ একজন গ্রেফতার

নিজ সংবাদ ॥ র‌্যাব-১২, সিপিসি-১, কুষ্টিয়া ক্যাম্পের র‌্যাবের একটি অভিযানিক দল গতকাল শনিবার  সকাল পৌণে ১২টার সময় ‘‘কুষ্টিয়ার  ভেড়ামারা থানার কাজীহাটা দক্ষিণপাড়া গ্রাম হতে আমদহ গ্রামগামী পাঁকা রাস্তায় কালিগাঙ্গী বিলের ব্রীজের উপর’’ একটি মাদক অভিযান পরিচালনা করে। উক্ত অভিযানে ২ কেজি গাঁজা, ১টি মোবাইল ফোন, ১টি সীমকার্ডসহ মমিন মন্ডল (৩২) নামের এক ব্যক্তিকে গ্রেফতার করে।  গ্রেফতারকৃত মমিন দৌলতপুর উপজেলার আমদহ গ্রামের  মোঃ হরয়ত আলী মন্ডলের ছেলে। পরর্বতীতে উদ্ধারকৃত আলামতসহ গ্রেফতারকৃত মমিনের বিরুদ্ধে ভেড়ামারা থানায় একটি মাদক মামলা দায়ের করা হয়েছে।

ইবি ছাত্রলীগের কমিটি বাতিল, সভাপতি-সম্পাদকের শাস্তি ও ছাত্রত্ব বাতিলের দাবিতে বিক্ষোভ এবং অবস্থান ধর্মঘট পালন করছে নেতা-কর্মিরা

ইবি প্রতিনিধি ॥ কুষ্টিয়া ইসলামী বিশ্ববিদ্যালয় (ইবি) ছাত্রলীগের বিতর্কিত কমিটি বাতিল, সভাপতি ও সাধারন সম্পাদককে বহিস্কারসহ তাদের ছাত্রত্ব বাতিলের দাবিতে বিক্ষোভ সমাবেশ ও অবস্থান ধর্মঘট পালন করছে ছাত্রলীগের নেতা-কর্মিরা। গতকাল শনিবার দুপুর সাড়ে ১১টার দিকে বিক্ষোভ মিছিল শেষে মৃত্যুঞ্জয়ী মুজিবের পাদদেশে দলটির তিন শতাধিক নেতা-কর্মি অবস্থান নেয়। এ সময় তারা প্লাকার্ড, ব্যানার ও ফেষ্টুন প্রদর্শন করে। আন্দোলনের নেতৃত্ব দেয়া ছাত্রলীগ নেতা মিজানুর রহমান লালন বলেন,‘ ইবি প্রশাসন তাদের স্বার্থ উদ্ধার করতে ৪০ লাখ টাকার বিনিময়ে পলাশ ও রাকিব নামের দুই বিতর্কিত কর্মিকে সভাপতি ও সম্পাদক করে কমিটি করে নিয়ে আসেন। এ কমিটি প্রথম থেকেই প্রত্যাখান করেছে ছাত্রলীগের সর্বস্তুরের নেতা-কর্মিরা। তাদের ফোনালাপ ফাঁসসহ নিয়োগ বাণিজ্যের মত ঘটনায় সম্পৃক্ততা পাওয়ার পর প্রশাসন কোন ব্যবস্থা নিচ্ছে না। এ কারনে লাগাতর আন্দোলন শুরু করা হয়েছে। আন্দোলন চলবে দাবি আদায় না হওয়া পর্যন্ত।

ছাত্রলীগ নেতা-কর্মিরা অবস্থান নিয়ে নানা রকম শ্লোগান দিয়ে কমিটি বাতিলের দাবি জানায়। তারা অবলিম্বে এদের ছাত্রত্ব বাতিলের দাবি করে। পাশাপাশি মুজিববর্ষের অনুষ্ঠানে বিতর্কিত ও নানা অপকর্মের সাথে সম্পৃক্ততা থাকার পর সাবেক প্রক্টর মাহবুবর রহমানকে আহবায়ক করার ঘটনায় ক্ষোভ প্রকাশ করে তাকে কমিটি থেকে বাদ দেয়ার দাবি জানিয়েছে ছাত্রলীগ নেতা-কর্মিরা। তারা ভিসির কাছে তাদের দাবি-দাওয়া পেশ করেন।

উল্লেখ, গত বছর ভিসি প্রফেসর হারুন-উর-রশিদ আসকারীর এলাকা রংপুরে বাড়ি রবিউল ইসলামকে পলাশকে সভাপতি ও কুমারখালীতে বাড়িতে রাকিবুল ইসলাম রাকিবকে সাধারন সম্পাদক করে নাটকীয়ভাবে ইবি ছাত্রলীগের কমিটি ঘোষনা দেয়া হয়। এরপর ফোনালাপ ফাঁস হয়। সেই ফোনালাপে কমিটি করতে ৪০ লাখ টাকা খরচ হয় বলে কথোপকথোনে উঠে আসে। কমিটিতে ত্যাগী ও পরিচ্ছন্ন নেতা-কর্মিরা বাদ পড়ায় ক্ষুব্ধ হয়ে জোটবদ্ধ হয়ে সকল নেতা-কর্মি আন্দোলন চালিয়ে আসছে।

কুষ্টিয়া জেনারেল হাসপাতাল

চিকিৎসক মুসা কবিরের অনন্য উদ্যোগ, হাত ধুয়ে হাসপাতালে প্রবেশ

নিজ সংবাদ ॥ হাসপাতালের জরুরি বিভাগের বামপাশে সাবান ও পানি রাখা হয়েছে। হাসপাতালে আসা ব্যক্তিরা তাদের হাত দুটো পরিস্কার পরিচ্ছন্নভাবে ধুয়ে তারপর হাসপাতালের প্রবেশের জন্য এ ব্যবস্থা করা হয়েছে। গতকাল শনিবার বেলা এগারটায় কুষ্টিয়া জেনারেল হাসপাতালে এসেবা চালু করা হয়েছে।

হাসপাতালের মেডিসিন বিভাগের জেষ্ঠ্য মেডিসিন বিশেষজ্ঞ এ এস এম মুসা কবির নিজ উদ্যোগে এসেবার ব্যবস্থা করেন। মাসব্যাপী এসেবায় কুষ্টিয়া সরকারি কলেজ ছাত্রলীগের সভাপতি স্বপন হোসেন সহযোগিতা করছেন। এসময় সেখানে হাসপাতালের তত্বাবধায়ক নুরুন্নাহার বেগম, আবাসিক চিকিৎসা কর্মকর্তা (আরএমও) তাপস কুমার সরকার, কুষ্টিয়া প্রেসক্লাবের সাধারণ সম্পাদক আনিসুজ্জামান ডাবলু, প্রথম আলোর কুষ্টিয়া প্রতিনিধি তৌহিদী হাসান ও কুষ্টিয়া সরকারী কলেজ ছাত্রলীগের সভাপতি স্বপন হোসেন উপস্থিত ছিলেন। চিকিৎসক এ এস এম মুসা কবির বলেন, করোনা ভাইরাস প্রতিরোধে হাত পরিস্কার রাখা প্রয়োজন। হাসপাতালের বিভিন্ন এলাকায় প্রতিদিন প্রচুর মানুষ আসে। তাদের সুবিধার্থে জরুরি বিভাগের সামনে হাত ধোয়ার দুটি বেসিন রাখা হয়েছে। সেখানে সাবান পানি দিয়ে নিজ উদ্যোগে হাত ধুয়ে তারপর হাসপাতালে প্রবেশের জন্য আাহ্বান জানানো হয়েছে।

কুষ্টিয়া সরকারি কলেজ ছাত্রলীগের সভাপতি স্বপন হোসেন বলেন, গত মৌসুমে এই হাসপাতালে ডেঙ্গু প্রতিরোধে ছাত্রলীগ দেড় মাস ধরে স্বেচ্ছা শ্রম দিয়ে ছিল। তারই ধারাবাহিকতায় করোনা প্রতিরোধে যতটুকু সম্ভব এগিয়ে আসা হয়েছে। প্রতিদিন সকালে দুটি বেসিনে সাবান রাখা হবে। হাসপাতাল ব্যবস্থাপনায় পানি রাখা হবে। মানুষকে সচেতন করতে ছাত্রলীগ হাত ধুতে উদ্বুদ্ধ করবে।

হাসপাতালের তত্বাবধায়ক নুরুন্নাহার বেগম বলেন- উদ্যোগ ছোট, কিন্তু এর ফল অনেক বড়। সবাইকে সচেতন হতে এমন উদ্যোগে সবার অংশগ্রহণ প্রয়োজন। নিজে সচেতন হলেই সব কিছু মোকাবিলা সম্ভব।

ঢাকা ফিরেছেন দিল্লীতে কোয়ারেন্টাইনে থাকা ২৩ জন

ঢাকা অফিস ॥ ভারতের দিল্লীতে ১৪ দিন কোয়ারেন্টাইনে থাকার পর বাংলাদেশ সরকারের ব্যবস্থাপনায় আজ শনিবার বিকেলে নয়াদিল্লী থেকে ঢাকায় ফিরেছেন ২৩ বাংলাদেশি নাগরিক। নয়া দিল্লীস্থ বাংলাদেশ হাই কমিশন থেকে পাঠানো এক সংবাদ বিজ্ঞপ্তিতে এ কথা জানিয়ে বলা হয়, এদের মধ্যে বেশির ভাগই শিক্ষার্থী, তবে একজন শিশুসহ একটি পরিবারও রয়েছে। এর আগে বৃহস্পতিবার বাংলাদেশি নাগরীকদের প্রয়োজনীয় মেডিক্যাল পরীক্ষা করা হয় এবং তাদের কারো শরীরে করোনা ভাইরাসের সংক্রমণ পাওয়া যায়নি বিধায় দেশে প্রত্যাবর্তনের অনুমতি দেয়া হয়। উল্লেখ্য, চীনের হুবেই প্রদেশে করোনা ভাইরাস ছড়িয়ে পড়ার পর সেখানে আটকা পড়া এই বাংলাদেশিদের ভারত সরকারের বিশেষ বিমানে অন্যান্য দেশের নাগরিকদের সাথে দিল্লী আনা হয় এবং নয়া দিল্লীর উপকণ্ঠে ছাওলাতে কোয়ারেন্টাইন ক্যাম্পে রাখা হয়। বাংলাদেশি নাগরিকদের ভারতে আসার পর দিল্লীস্থ বাংলাদেশ হাই কমিশন তাদের বিশেষ সুযোগ-সুবিধা স্বাস্থ্য সেবা নিশ্চিত করতে ভারতীয় কর্তৃপক্ষ ও শিক্ষার্থীদের সাথে সার্বিক যোগাযোগ রক্ষা করে। এরই ধারাবাহিকতায়, বাংলাদেশ সরকারের আর্থিক সহায়তায় তারা ইন্ডিগো ফ্লাইটে দ্রুত দেশে ফিরে আসেন। ঢাকায় ফেরার পথে, শনিবার সকালে ইন্দিরাগান্ধী আন্তর্জাতিক বিমান বন্দরে ভারতে নিযুক্ত বাংলাদেশের হাই কমিশনার মোহাম্মদ ইমরান, তাদের বিদায় জানান ও তাদেরকে এই কঠিন পরিস্থিতি অত্যান্ত ধর্যের সাথে মোকাবেলা করার জন্য ধন্যবাদ জানান। এসময় শিক্ষার্থীরা বাংলাদেশ সরকারের আর্থিক সহযোগিতা এবং সার্বিক ব্যবস্থাপনার জন্য নয়া দিল্লী ও বেইজিংস্থ বাংলাদেশ দূতাবাসের কর্মকর্তাদের প্রতি কৃতজ্ঞতা প্রকাশ করেন।

দৌলতপুর সীমান্তে গাঁজা উদ্ধার

দৌলতপর প্রতিনিধি ॥ কুষ্টিয়ার দৌলতপুর সীমান্তে সাড়ে ৮ কেজি গাঁজাসহ বিভিন্ন প্রকার মাদক উদ্ধার হয়েছে। শুক্রবার দিবাগত রাত ১টার দিকে প্রাগপুর বিওপি’র টহল দল ময়রামপুর মাঠে অভিযান চালিয়ে ৮.৫ কেজি গাঁজা উদ্ধার করেছে। অপরদিকে আশ্রয়ন ও চিলমারী বিওপি’র টহল দল গতকল শনিবার সকাল ৯টা ও বিকেল ৩টার দিকে সীমান্ত সংলগ্ন নদীরপাড় ও আলিমডোবা মাঠে অভিযান চালিয়ে ৩৪ বোতল ভারতীয় মদ ও ৩৩১০ প্যাকেট পাতার বিড়ি উদ্ধার করেছে। এছাড়াও পাশর্^বর্তী মেহেরপুর জেলার গাংনী উপজেলার শেওড়াপাড়া বিওপি’র টহল দল গতকাল সকাল ১১টার দিকে রিফুজিপাড়া মাঠে অভিযান চালিয়ে ৫৮ বোতল বেঙ্গল টাইগার মদ উদ্ধার করেছে। তবে উদ্ধার হওয়া এসব মাদকের সাথে জড়িত কেউ আটক হয়নি।

ইবিতে বঙ্গবন্ধু’র জন্মশতবার্ষিকী ও জাতীয় শিশু দিবসে নানা কর্মসূচী 

ইসলামী বিশ্ববিদ্যালয়ে ১৭ মার্চ জাতির পিতা বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের জন্মশতবার্ষিকী ও জাতীয় শিশু দিবস ২০২০ যথাযোগ্য মর্যাদায় পালনের লক্ষ্যে নানা কর্মসূচি গ্রহণ করেছেন বিশ^বিদ্যালয় কর্তৃপক্ষ। কর্মসূচীর মধ্যে রয়েছে ১৫ মার্চ  বেলা সাড়ে ১১টায় ইসলামী বিশ্ববিদ্যালয় ল্যাবরেটরি স্কুল এন্ড কলেজের শিক্ষার্থীদের অংশগ্রহণে ল্যাবরেটরি স্কুল এন্ড কলেজের বিভিন্ন শ্রেণি কক্ষে যথাক্রমে ক,খ, গ ক্যাটাগরিতে চিত্রাঙ্কন প্রতিযোগিতা অনুষ্ঠিত হবে। চিত্রাঙ্কন প্রতিযোগিতার উদ্বোধন করবেন ভাইস চ্যান্সেলর প্রফেসর ড. মোঃ হারুন-উর-রশিদ আসকারী। এ সময় সাথে থাকবেন প্রো-ভাইস চ্যান্সেলর প্রফেসর ড. মোঃ শাহিনুর রহমান, ট্রেজারার প্রফেসর ড. মোঃ সেলিম তোহা ও রেজিস্ট্রার (ভারঃ) এস এম আব্দুল লতিফ। এছাড়া  “ক” ক্যাটাগরিতে শিশু শ্রেণি হতে ২য় শ্রেণির ছাত্র-ছাত্রীদের “গ্রাম বাংলার প্রাকৃতিক দৃশ্য”, “খ” ক্যাটাগরিতে ৩য় শ্রেণি হতে ৫ম শ্রেণির পর্যন্ত “নদী মার্তৃক বাংলাদেশ” এবং “গ” ক্যাটাগরিতে ৬ষ্ঠ শ্রেণি হতে ১০ম শ্রেণি পর্যন্ত “মুক্তিযুদ্ধ ও বঙ্গবন্ধু” শীর্ষক চিত্রাঙ্কন প্রতিযোগিতা অনুষ্ঠিত হবে এবং ১৭ মার্চ মঙ্গলবার জাতির পিতা বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের জন্মশতবার্ষিকী ও জাতীয় শিশু দিবস  উপলক্ষ্যে ইসলামী বিশ্ববিদ্যালয় ল্যাবরেটরি স্কুল এন্ড কলেজের ছাত্র-ছাত্রী এবং বিশ্ববিদ্যালয়ের ছাত্র-ছাত্রীদের অংশগ্রহনে যথাক্রমে ক, খ, গ ক্যাটাগরিতে রচনা প্রতিযোগিতা অনুষ্ঠিত হবে। রচনা প্রতিযোগিতার বিষয়সমূহ হচ্ছে “ক” ক্যাটাগরিতে ১ম হতে ৫ম শ্রেণি পর্যন্ত “বঙ্গবন্ধুর ছেলেবেলা” শিরোনামে ২০০ হতে ৩০০ শব্দের মধ্যে, “খ”  ক্যাটাগরিতে ৬ষ্ঠ শ্রেণি হতে ১০ম শ্রেণি পর্যন্ত “বঙ্গবন্ধুর রাজনৈতিক জীবন” শিরোনামে ৪০০ হতে ৫০০ শব্দের মধ্যে  এবং “গ” ক্যাটাগরিতে বিশ্ববিদ্যালয়ের ছাত্র-ছাত্রীদের মধ্যে “আমাদের স্বাধীনতা ও বঙ্গবন্ধু” শিরোনামে ৭০০ থেকে ১০০০ শব্দের মধ্যে স্ব হস্তে লিখিত রচনা।

এছাড়া  ১৭ মার্চ মঙ্গলবার সকাল ১০ টায় জাতির পিতা বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের জন্মশতবার্ষিকী ও জাতীয় শিশু দিবস উপলক্ষ্যে প্রশাসন ভবন চত্বরে বেলুন উড়িয়ে দিনের কর্মসূচির উদ্বোধন করবেন ভাইস চ্যান্সেলর প্রফেসর ড. মোঃ হারুন-উর-রশিদ আসকারী। উপস্থিত থাকবেন প্রো-ভাইস চ্যান্সেলর প্রফেসর ড. মোঃ শাহিনুর রহমান, ট্রেজারার প্রফেসর ড. মোঃ সেলিম তোহা ও রেজিস্ট্রার (ভারঃ) এস এম আব্দুল লতিফ। উদ্বোধন শেষে সরকার কর্তৃক নভেল করোনাভাইরাস সংক্রমণ রোধে জনসমাগম এড়িয়ে অনুষ্ঠানের আয়োজন করার নিদের্শনা দেওয়ায় এ বছর স্বল্প পরিসরে  আনন্দ র‌্যালি অনুষ্ঠিত হবে। আনন্দ র‌্যালি শেষে “মৃত্যুঞ্জয়ী মুজিব মুর‌্যালে” বিশ্ববিদ্যালয়ের পক্ষ থেকে শ্রদ্ধাঞ্জলি নিবেদন করবেন ভাইস চ্যান্সেলর প্রফেসর ড. মোঃ হারুন-উর-রশিদ আসকারী। এ সময় সাথে থাকবেন প্রো-ভাইস চ্যান্সেলর  প্রফেসর ড. মোঃ শাহিনুর রহমান, ট্রেজারার প্রফেসর ড. মোঃ সেলিম তোহা এবং রেজিস্ট্রার (ভারঃ) এস এম আব্দুল লতিফ। এরপর শ্রদ্ধাঞ্জলি নিবেদনের জন্য মৃত্যুঞ্জয়ী মুজিব মুর‌্যাল সকলের জন্য উন্মুক্ত করে দেয়া হবে। মৃত্যুঞ্জয়ী মুজিব মুর‌্যাল চত্বরে ১৭ মার্চ মঙ্গলবার রাত ৮টায় কেক কাটা এবং চিত্রাঙ্কন ও রচনা প্রতিযোগিতায় বিজয়ীদের মাঝে পুরস্কার বিতরণ করা হবে। অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথি হিসেবে উপস্থিত থাকবেন ভাইস চ্যান্সেলর প্রফেসর ড. মোঃ হারুন-উর-রশিদ আসকারী। বিশেষ অতিথি থাকবেন প্রো-ভাইস চ্যান্সেলর প্রফেসর ড. মোঃ শাহিনুর রহমান ও ট্রেজারার প্রফেসর ড. মোঃ সেলিম তোহা। অতিথি থাকবেন রেজিস্ট্রার (ভারঃ) এস এম আব্দুল লতিফ এবং বঙ্গবন্ধু জন্মশতবার্ষিকী ২০২০ উদ্যাপন উপ-কমিটির আহবায়ক প্রফেসর ড. মোঃ মাহবুবর রহমান। অনুষ্ঠান শেষে জাতির পিতা বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের আত্মার শান্তি কামনা করে দোয়া ও মোনাজাত অনুষ্ঠিত হবে। সংবাদ বিজ্ঞপ্তি

ইতালি ফেরতরা সুস্থ আছেন – স্বাস্থ্যমন্ত্রী

ঢাকা অফিস ॥ নভেল করোনাভাইরাস ছড়িয়ে বিপর্যস্ত ইতালি থেকে যে শতাধিক বাংলাদেশি গতকাল শনিবার দেশে ফিরেছেন, তারা রোগাক্রান্ত নন বলে জানিয়েছেন স্বাস্থ্যমন্ত্রী জাহিদ মালেক। তবে দেশে ঝুঁকি এড়াতে তাদের কোয়ারেন্টিনে রেখে স্বাস্থ্য পরীক্ষা করা হবে বলে জানিয়েছেন তিনি। বাংলাদেশে এর আগে ইতালিফেরতসহ যে তিনজনের দেহে নভেল করোনাভাইরাসের সংক্রমণ ঘটেছিল, তারাও সুস্থ হয়ে উঠেছেন বলে জানান স্বাস্থ্যমন্ত্রী। শনিবার সকালে এমিরেটসের একটি ফ্লাইটে ঢাকার শাহজালাল বিমানবন্দরে নামেন ইতালির রোমে থেকে আসা ১৪২ বাংলাদেশি। বিমানবন্দর থেকেই তাদের বিশেষ ব্যবস্থায় নিয়ে যাওয়া হয় আশকোনার হজ ক্যাম্পে। সেখানে তাদের কোয়ারেন্টিনে রাখার নির্দেশনা দেয় স্বাস্থ্য অধিদপ্তর। এরপর আইইডিসিআরের নিয়মিত সংবাদ সম্মেলনে জানানো হয়, প্রাথমিক পরীক্ষায় ইতালি ফেরত এই ব্যক্তিদের মধ্যে কভিড-১৯ রোগের কোনো লক্ষণ দেখা যায়নি। দুপুরে স্বাস্থ্য অধিদপ্তরে সংবাদ সম্মেলনে এসে স্বাস্থ্যমন্ত্রী জাহিদ মালেক বলেন, “যারা আসছে, সকলেই সুস্থ আছেন। কেউ অসুস্থ নাই। সেভাবে আমরা পাইনি। “তাদের হজক্যাম্পে নিয়ে রেখেছি। সেখানে রেখে তাদের পরীক্ষা করব। তারা সংক্রমিত কি না, দেখব। আমরা জেনেছি তারা অনেকে সার্টিফেকট নিয়ে এসেছে। তারা সেখানেও কোয়ারেন্টিনে ছিল। যদি দেখি সবাই সুস্থ সেক্ষেত্রে তাদের হোম কোয়ারেন্টাইনে রাখব।” স্বাস্থ্য অধিদপ্তরের মহাপরিচালক অধ্যাপক আবুল কালাম আজাদ বলেন, “১৪২ জন সেখানে এসেছে, তাদের জিজ্ঞাসাবাদ করে জেনেছি কোথা থেকে এসেছে। “অনেকে হেলথ সার্টিফিকেট নিয়ে এসেছে। আজ বিকালে আরও ৩৪ জন আসবে। আগামীকাল ১৫৫ জন আসার কথা শুনেছি।” স্বাস্থ্যমন্ত্রী বলেন, “ইতালিতে যেহেতু বেশি ছড়িয়েছে, তাই আমরা সিদ্ধান্ত নিয়েছি, সেখান থেকে যারাই আসবে তারা কোয়ারেন্টিনে থাকবে। প্রথমে তারা বাধ্যতামূলক কোয়ারেন্টিনে থাকবে, পরে হোম কোয়ারেন্টিনে থাকবে।” ইতালি থেকে আরও বাংলাদেশি আসছে বলে দেশে সংক্রমণের ঝুঁকি এড়াতে এই পদক্ষেপ নেওয়া হচ্ছে বলে জানান তিনি। “যেহেতু অনেক লোক ইতালি থেকে এসেছে, তাদের মধ্যে অনেকে দুর্যোগপ্রবণ এলাকায় ছিল, তাই তাদের বাধ্যতামূলক কোয়ারেন্টিনে রেখেছি। একেবারে ছেড়ে দেব না। আমরা বিশেষ ব্যবস্থা নিয়েছি। নিজ নিজ বাড়িতে সরকারি তত্ত্বাবধানে তাদের হোম কোয়ারেন্টিনে রাখা হবে।” ইতালি থেকে এসে যারা নিজ নিজ এলাকায় ফিরে গেছেন, তাদের উপর নজর রাখা হচ্ছে বলেও জানান স্বাস্থ্যমন্ত্রী। “ইউনিয়ন পরিষদের চেয়ারম্যানরা নজর রাখছেন স্থানীয়ভাবে। জনগণও বিদেশ থেকে কেউ আসলে আমাদের জানাচ্ছে। সেখানে ডাক্তার ও পুলিশ যাচ্ছে, যাতে তারা বের না হন সে বিষয়ে পরামর্শ দিচ্ছেন।” স্বাস্থ্য সচিব মোহাম্মদ আসাদুল ইসলাম সংবাদ সম্মেলনে বলেন, “সারাদেশে ডিসি-ইউএনওদের নিয়ে কমিটি করা হয়েছে। তাদের সঙ্গে হোয়াটসঅ্যাপে যোগাযোগ রাখছি। স্থানীয়ভাবে কমিটি খুব অ্যাকটিভ। যারা এসেছে, তাদের চেকআপ করা হয়েছে।” স্বাস্থ্যমন্ত্রী বলেন, “জেলা-উপজেলার কমিটিগুলো খুব তৎপর। বিদেশ থেকে যারা আসছে তাদের বাধ্যতামূলক কোয়ারেন্টিনে রাখা হয়েছে। কেউ গোপন করলে তথ্য গোপনের যে আইন, তা প্রয়োগ হবে। সেখানে জেল-জরিমানার কথা বলা হয়েছে।” স্বাস্থ্য অধিদপ্তরের এক বিজ্ঞপ্তিতে বিদেশ থেকে আসা সবাইকে কোয়ারেন্টিনে রাখার কথা বলা হয়েছে। তবে স্বাস্থ্যমন্ত্রীর কথায় স্পষ্ট, এক্ষেত্রে হোম কোয়ারেন্টিনের কথাই বলা হচ্ছে। অর্থাৎ বিদেশ থাকা আসা ব্যক্তিরা তাদের বাড়িতে থাকবেন, স্বাস্থ্যবিধি মেনে চলবেন, ঘর থেকে বের হবেন না। আর প্রশাসন তাদের উপর নজর রাখবে। স্বাস্থ্যমন্ত্রী বলেন, “আমাদের দেশের লোক বাইরে অনেক। সবাই আসতে শুরু করলে আমাদের জন্য নিয়ন্ত্রণ করা কষ্টকর হবে। বিদেশ থেকে আসা সবাইকে ঢাকায় রাখার সুযোগ নেই।” এক্ষেত্রে প্রশাসনের তৎপরতায় কোনো ঘাটতি নেই দাবি করে তিনি বলেন, “কোন জেলায় কতজন কোয়ারেন্টিন হচ্ছে, কীভাবে তারা আছে, প্রতিটি নিউজ আমাদের কাছে আছে।” নভেল করোনাভাইরাস বৈশ্বিক মহামারী রূপ ধারণ করায় বাংলাদেশ ঝুঁকিমুক্ত না হলেও সরকার সংক্রমণ ঠেকাতে যথেষ্ট পদক্ষেপ নিয়েছে বলে দাবি করেন জাহিদ মালেক। “করোনাভাইরাস যেখানে আছে, সেখানে তো একটু ঝুঁকি থাকেই। তবে গত দুই মাসে প্রতিরোধে আমরা যে ব্যবস্থা নিয়েছি সে ব্যবস্থা কোনো দেশই নেয়নি।” সংবাদ সম্মেলনে তিনি বলেন, “আমাদের দেশে যে করোনা আক্রান্ত রোগী পাওয়া গিয়েছিল তাদের মধ্যে ২ জনের শরীরে করোনাভাইরাস নেই। “তৃতীয় জনের রিপোর্টও নেগেটিভ পাওয়া গেছে। আমরা আস্তে আস্তে তাদের ছেড়ে দেব।”