বিএনপিকে নাসিমের ধন্যবাদ

ঢাকা অফিস ॥ নভেল করোনাভাইরাস সংক্রমণের কারণে কর্মসূচি স্থগিত করায় বিএনপিকে ধন্যবাদ জানিয়ে এই রোগ প্রতিরোধে সরকারকে সহযোগিতা করতে দলটির প্রতি আহ্বান জানিয়েছেন ক্ষমতাসীন আওয়ামী লীগের সভাপতিম-লীর সদস্য ও ১৪ দলের মুখপাত্র মোহাম্মদ নাসিম। নভেল করোনাভাইরাস মোকাবেলা নিয়ে গতকাল বৃহস্পতিবার ১৪ দলের এক বৈঠক শেষে সংবাদ সম্মেলনে তিনি বিএনপির প্রতি এই আহ্বান জানানোর পাশাপাশি এই পরিস্থিতিতে ব্যবসায়ীদের দায়িত্বশীল আচরণও প্রত্যাশা করেন। নভেল করোনাভাইরাস চীন থেকে ছড়িয়ে সারাবিশ্বে মহামারী আকার ধারণ করেছে। বাংলাদেশেও তিনজন রোগী ধরা পড়ার পর জনসমাগম ঘটানোর কর্মসূচিগুলো স্থগিত করা হচ্ছে। নাসিম বলেন, “বিএনপির বন্ধুদের বলব, এখন রাজনীতি করার সময় নয়। আপনারা এগিয়ে আসুন। আপনাদের ধন্যবাদ জানাই যে, আপনারাও কর্মসূচি স্থগিত করেছেন। “দেশের এই পরিস্থিতিতে দল-মত নির্বিশেষে সকলে জননেত্রী শেখ হাসিনার নেতৃত্বে সহযোগিতা করার জন্য আহ্বান জানাচ্ছি।” করোনাভাইরাস সংক্রমণ প্রতিরোধে সরকারের ভূমিকার সমালোচনা করে আসছে বিএনপি। তার প্রতিক্রিয়ায় আওয়ামী লীগ নেতারা বলে আসছেন, বিএনপি এনিয়েও রাজনীতি করছে। বাংলাদেশে রোগী শনাক্তের পর ভাইরাসের মতো জীবাণুনাশকের দাম বেড়ে যাওয়ায় ব্যবসায়ীদের নিয়ে ক্ষোভ ঝাড়েন সাবেক মন্ত্রী নাসিম। তিনি বলেন, “এটা অভ্যাস হয়ে গেছে, যে কোনো দুর্যোগে একটা মহল ব্যবসায় নেমে পড়ে এই জনগণ তো আপনার ভাই-বোন-আত্মীয়-স্বজন হতে পারে। তাদের কষ্ট দিয়ে ব্যবসা করার কোনো মানে নেই। এটা দায়িত্বহীনতার পরিচয়। “যারা বিভিন্ন ধরনের দুর্যোগের সুযোগ নিয়ে ব্যবসা করে তারা গণদুশমন। এদের বর্জন করতে হবে।” করোনাভাইরাসে আতঙ্কিত না হয়ে সতর্কতার সঙ্গে পরিস্থিতি মোকাবেলা করার আহ্বান জানানর ১৪ দলের মুখপাত্র। এনিয়ে সরকারের পদক্ষেপ এবং আন্তরিকতার প্রশংসা করে প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার প্রতি ধন্যবাদ জানান নাসিম। একই সঙ্গে চিকিৎসকদের প্রতিও কৃতজ্ঞতা জানান সাবেক এই স্বাস্থ্যমন্ত্রী। এই মুহূর্তে প্রবাসীদের দেশে আসা নিরুৎসাহিত করেন নাসিম। বিমানবন্দরে আরও সতর্কতা অবলম্বনের পরামর্শও দেন তিনি। করোনাভাইরাসের কারণে সরকার ও আওয়ামী লীগ মুজিববর্ষের কর্মসূচি সীমিত করার কারণে কেন্দ্রীয় ১৪ দলের পক্ষ থেকেও সীমিত কর্মসূচি পালনের সিদ্ধান্ত হয়েছে। নাসিম জানান, ১৭ মার্চ রাত ৮টায় ধানমন্ডি ৩২ নম্বরে বঙ্গবন্ধুর প্রতিকৃতিতে শ্রদ্ধা জানাবেন ১৪ দলের শীর্ষ নেতারা। সেদিন দুপুরে জোট শরিক তরীকত ফেডারেশনের কার্যালয়ে বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের আত্মার মাগফিরাত কামনা করে দোয়া ও মিলাদ মাহফিল হবে। ২০ মার্চ টুঙ্গীপাড়ায় জাতির পিতার সমাধিতে শ্রদ্ধা নিবেদন করবেন ১৪ দলের শীর্ষ নেতারা। ধানমন্ডিতে নাসিমের বাড়িতে ১৪ দলের এই বৈঠকে ছিলেন সাম্যবাদী দলের সাধারণ সম্পাদক দিলীপ বড়–য়া, কমিউনিস্ট কেন্দ্রের আহ্বায়ক ওয়াজেদুল ইসলাম খান, তরীকত ফেডারেশনের চেয়ারম্যান নজিবুল বশর মাইজভান্ডারী, বাসদের আহবায়ক রেজাউর রশিদ খান, গণআজাদী লীগের সভাপতি এস কে শিকদার, আওয়ামী লীগের কেন্দ্রীয় কমিটির সদস্য মোফাজ্জল হোসেন চৌধুরী মায়া, উপ-দপ্তর সম্পাদক সায়েম খান।

দৌলতপুরে পুষ্টি সমন্বয় কমিটির সভা অনুষ্ঠিত

দৌলতপর প্রতিনিধি ॥ কুষ্টিয়ার দৌলতপুর উপজেলা পুষ্টি সমন্বয় কমিটির দ্বি-মাসিক সভা অনুষ্ঠিত হয়েছে। দৌলতপুর উপজেলা নির্বাহী অফিসার শারমিন আক্তারের সভাপতিত্বে গতকাল বৃহস্পতিবার উপজেলা পরিষদ কনফারেন্স রুমে এ সভা অনুষ্ঠিত হয়। সভায় উপস্থিত ছিলেন দৌলতপুর উপজেলা চেয়ারম্যান এ্যাড. এজাজ আহমেদ মামুন। পুষ্টি ও করোনা ভাইরাস নিয়ে স্বাগত বক্তব্য রাখেন দৌলতপুর উপজেলা স্বাস্থ্য ও পরিবার পরিকল্পনা কর্মকর্তা ডা. অরবিন্দু কুমার পাল। তথ্যচিত্রের মাধ্যমে পুষ্টি বিষয়ক বক্তব্য উপস্থাপন করেন দৌলতপুর প্রাণী সম্পদ কর্মকর্তা। বক্তব্য রাখেন দৌলতপুর মৎস্য অফিসার খন্দকার সহিদুর রহমান। সভায় উপজেলা পরিষদের বিভিন্ন দপ্তরের কর্মকর্তা, বিভিন্ন ইউনিয়ন পরিষদের চেয়ারম্যানবৃন্দ ও পুষ্টি সমন্বয় কমিটির সদস্যবৃন্দ উপস্থিত ছিলেন। সভায় করোনা ভাইরাস সংক্রান্ত সতর্ক ও করণীয় বিষয়ে বক্তব্য রাখেন উপজেলা নির্বাহী অফিসার শারমিন আক্তার।

কলকাকলী মাধ্যমিক বিদ্যালয়ের শিক্ষার্থীদের মাঝে পানির পট এবং মাস্ক বিতরণ

নিজ সংবাদ ॥ “পরিচ্ছন্ন জীবন গড়ি, স্বাস্থ্য সুরক্ষা করি” শ্লোগানের মধ্যদিয়ে বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের জন্মশতবার্ষিকী উদ্যাপন উপলক্ষ্যে গতকাল বিকেলে কুষ্টিয়া কলকাকলী মাধ্যমিক বিদ্যালয় স্বাস্থ্য সচেতনতামুলক আলোচনা সভা ও করোনা ভাইরাস প্রতিরোধে নিরাপদ পানির পট এবং মাস্ক বিতরণ করা হয়েছে। বিদ্যালয়ের প্রধান শিক্ষক জেব-উন-নিসা সবুজের সভাপতিত্বে অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথি ছিলেন বিদ্যালয় পরিচালনা পরিষদের সভাপতি ও জেলা আওয়ামীলীগের সাধারণ সম্পাদক বীর মুক্তিযোদ্ধা আজগর আলী। তিনি বলেন, করোনা ভাইরাস প্রতিরোধে প্রতিটি মানুষকে সচেতন হতে হবে এবং সব সময় নিজেকে  পরিস্কার-পরিচ্ছন্ন রাখার পাশাপাশি ব্যবহারের সকল কিছু পরিস্কার-পরিচ্ছন্ন রাখতে হবে। এ সময় বিদ্যালয় পরিচালনা পরিষদের অভিভাবক সদস্য এ, কে জুলফিকার আলী, মোঃ আব্বাস আলী, মোঃ আসাদুর রহমান বাবু, মহিলা অভিভাবক সদস্য মোছাঃ রওশন আরা খাতুন, সাধারণ শিক্ষক সদস্য পারভীন আক্তার, মোছাঃ সাবিনা খাতুন, সংরক্ষিত মহিলা শিক্ষক সদস্য লায়লা ইয়াসমীনসহ অন্যান্যরা। পরে বিদ্যালয়ে ষষ্ঠ থেকে দশম শ্রেণীর সকল শিক্ষার্থীদের মাঝে পানির পট ও মাস্ক বিতরণ করেন অতিথিবৃন্দ।

স্বাধীনতা পদক পাচ্ছেন না রইজ উদ্দিন

ঢাকা অফিস ॥ সমালোচনার প্রেক্ষাপটে এস এম রইজ উদ্দিন আহম্মদ স্বাধীনতা পদক পাচ্ছেন না। এবারের স্বাধীনতা পদকের জন্য মনোনীতদের তালিকায় সাহিত্যে রইজ উদ্দিনের নাম থাকলেও তার নাম বাদ দিয়ে গতকাল বৃহস্পতিবার সংশোধিত তালিকা প্রকাশ করেছে মন্ত্রিপরিষদ বিভাগ। কেন রইজ উদ্দিনের নাম সংশোধিত তালিকায় নেই- সেই প্রশ্নে মন্ত্রিপরিষদ বিভাগের অতিরিক্ত সচিব (কমিটি ও অর্থনৈতিক অধিশাখা) আবু সালেহ্ মোস্তফা কামাল বলেন, “সরকার সিদ্ধান্ত নিয়েছে।” গত ২০ ফেব্র“য়ারি নয় ব্যক্তি ও একটি প্রতিষ্ঠানকে এবারের স্বাধীনতা পদকের জন্য মনোনীত করা হয়, যেখানে সাহিত্যে রইজ উদ্দিনের নাম ছিল। সদ্য সাবেক সরকারি কর্মকর্তা রইজ উদ্দিন ২৫টির বেশি বই লিখলেও সমকালীন বাংলা সাহিত্য অঙ্গনে তিনি পরিচিত ছিলেন না। রইজ উদ্দিনের নাম তালিকায় দেখে অনেক কবি-সাহিত্যিক বিস্ময় প্রকাশ করেন। বাংলা একাডেমির সাবেক মহাপরিচালক শামসুজ্জামান খান ফেইসবুকে লিখেছিলেন, “এবার সাহিত্যে স্বাধীনতা পুরস্কার পেলেন রইজ উদ্দীন, ইনি কে? চিনি না তো। নিতাই দাসই বা কে! হায়! স্বাধীনতা পুরস্কার!” অসাধারণ অবদানের জন্য যারা চিরস্মরণীয় হয়ে আছেন এবং শিক্ষা-সংস্কৃতি, শিল্প-সাহিত্য, বিজ্ঞান-প্রযুক্তি ও জনকল্যাণসহ বিভিন্ন ক্ষেত্রে যারা দেশ ও সমাজকে এগিয়ে নিয়ে গেছেন- তাদের যথাযথ সম্মান ও স্বীকৃতি প্রদানের দায়িত্ববোধ থেকে দেশের ব্যক্তি ও প্রতিষ্ঠানকে ‘স্বাধীনতা পুরস্কার’ দেওয়া হয়। বাংলাদেশের বেসামরিক সর্বোচ্চ রাষ্ট্রীয় পুরস্কারপ্রাপ্তরা ১৮ ক্যারেট মানের পঞ্চাশ গ্রাম ওজনের একটি স্বর্ণপদক, পাঁচ লাখ টাকার চেক ও একটি সম্মাননাপত্র পান। এবার পুরস্কারের জন্য মনোনীতরা হলেন কমান্ডার (অব.) আবদুর রউফ ও লেখক-অধ্যাপক আনোয়ার পাশা, বস্ত্র ও পাটমন্ত্রী গোলাম দস্তগীর গাজী, আজিজুর রহমান, অধ্যাপক ডা. মো. উবায়দুল কবীর চৌধুরী, ডা. এ কে এম এ মুকতাদির, কালীপদ দাস ও অভিনেত্রী ফেরদৌসী মজুমদার। এছাড়া ভারতেশ্বরী হোমসকেও এবার পদক দেওয়া হবে। আগামী ২৫ মার্চ ওসমানী স্মৃতি মিলনায়তনে প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা মনোনীতদের পদক বিতরণ করবেন।

মুজিববর্ষ উদযাপন উপলক্ষে ‘পরিচ্ছন্ন গ্রাম-পরিচ্ছন্ন শহর’ কর্মসূচির উদ্বোধন

উপসর্গ দেখা দিলেই ডাক্তারের কাছে যাওয়ার পরামর্শ প্রধানমন্ত্রীর

ঢাকা অফিস ॥ বিশ্বজুড়ে মহামারীর রূপ নেওয়া নভেল করোনাভাইরাসের (কভিড-১৯) যে কোনো উপসর্গ দেখা দেওয়ার সঙ্গে সঙ্গে চিকিৎসকের কাছে যাওয়ার পরামর্শ দিয়েছেন প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা। গতকাল বৃহস্পতিবার সকালে গণভবনে মুজিববর্ষ উদযাপন উপলক্ষে ‘পরিচ্ছন্ন গ্রাম-পরিচ্ছন্ন শহর’ কর্মসূচির আওতায় দেশব্যাপী পরিছন্নতা কার্যক্রমের উদ্বোধন অনুষ্ঠানে তিনি দেশবাসীর প্রতি এই আহ্বান জানান। বাংলাদেশে গত রোববার তিনজন কভিড-১৯ রোগী শনাক্তের পর নতুন করে আর কেউ আক্রান্ত হয়নি বলে বৃহস্পতিবার জানিয়েছেন স্বাস্থ্যমন্ত্রী জাহিদ মালেক। আক্রান্ত তিনজনও সুস্থ হওয়ার পথে। করোনাভাইরাস প্রতিরোধে বাংলাদেশ সরকার সর্বাত্মকভাবে চেষ্টা চালিয়ে যাচ্ছে জানিয়ে প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা বলেন, “সেই ক্ষেত্রে আমি বলব আমাদের এখানে যদি কেউ কখনও মনে করেন যে এ ধরনের ভাইরাসে আক্রান্ত হয়েছেন বা তার কোনোরকম নমুনা দেখা দিচ্ছে, সঙ্গে সঙ্গে আপনাদের ডাক্তারের পরামর্শ নিতে হবে এবং আমরা প্রতিটি জেলা-উপজেলায়ও আমাদের চিকিৎসাকেন্দ্র বা হাসপাতালগুলো প্রস্তুত রেখেছি। “কোনো রকম উপসর্গ দেখা গেলে সেটা না লুকিয়ে রেখে সাথে সাথে ডাক্তার দেখানো এবং পরামর্শ নেওয়া, চিকিৎসা নেবেন আপনারা। সেটা আমরা চাই।” আইইডিসিআর থেকে প্রতিনিয়ত দেশবাসীকে সচেতন করা হচ্ছে উল্লেখ করে তিনি বলেন, “সচেতনতামূলক যে সমস্ত নির্দেশনা আসছে সেটা সবাইকে মেনে চলতে হবে। তাহলেই আমরা কিন্তু আমাদের দেশটাকে ভাইরাসের আক্রমণ থেকে রক্ষা করতে পারব। “যারা বিদেশ থেকে আসবে সাথে সাথে অনুরোধ করব যেসব দেশে এই ধরনের ভাইরাস দেখা গেছে, তারা নিজেরা অন্তত বাইরের কারো সঙ্গে মিশবেন না এবং কিছুদিন অপেক্ষা করে দেখবেন এই রোগের কোনোরকম লক্ষণ দেখা যায় কিনা। যদি লক্ষণ থাকে সাথে সাথে সেটার ব্যবস্থা নেওয়াৃকারণ একজনের জন্য আরেকজনের মধ্যে ছড়াতে পারে। এই বিষয়টার দিকে সবার নজর রাখতে হবে।” বক্তব্যের শুরুতে শেখ হাসিনা বলেন, “করোনা ভাইরাসটা এমনভাবে ছড়িয়ে পড়েছে যে এখানে হয়তো মৃতের সংখ্যা তেমন না, কিন্তু আতঙ্ক অনেক বেশি। সেই ক্ষেত্রে আমি সবাইকে বলব এখান থেকেও আমাদের দেশকে মুক্ত রাখতে হবে। “ইতিমধ্যে আমরা বিদেশ থেকে আসা আমাদের দুইজন নাগরিককে শনাক্ত করেছি। তাদের চিকিৎসা করা হয়েছে, তারা মোটামুটি ভালো এবং একজন সংক্রমিত হয়েছিল। এছাড়া বাকি আমরা সবাই ভালো আছি। কিন্তু এই ভালো থাকলেই চলবে না। ভালো সবাইকে রাখতে হবে। সেটাও মাথায় রাখতে হবে।” পরিষ্কার-পরিচ্ছন্নতার গুরুত্ব তুলে ধরে প্রধানমন্ত্রী বলেন, “আমরা মহান মুক্তিযুদ্ধে বিজয়ী জাতি হিসেবে বিশ্ব দরবারে মাথা উঁচু করে সম্মানের সাথে চলতে চাই। সেটা করতে গেলে আমাদের যেটা করতে হবে, দেশকে আমাদের গড়ে তুলতে হবে সুন্দরভাবে। আর এই সুন্দরভাবে দেশ গড়ে তুলতে গেলে পরিষ্কার-পরিচ্ছন্নতা আমাদের সকলের জন্য প্রয়োজন। “নিজেরা যদি পরিষ্কার-পরিচ্ছন্ন না থাকেন তাহলে আশপাশের মানুষগুলো ভালো থাকতে পারবে না বা রোগ-শোক, বালাই এগুলো সবসময় দেখা দেবে।”

কুষ্টিয়া শহরের মজমপুরে বহুতল ভবনে অভিযান চালিয়ে দুটি বিদেশী পিস্তল, ইয়াবাসহ ১ জন গ্রেফতার

নিজ সংবাদ ॥ কুষ্টিয়া শহরের পূর্বমজমপুরের মনামী ক্রিষ্টাল প্যালেস নামীয় বহুতল বিশিষ্ট ভবনের ৬তলার একটি ফ্লাটে মাদকদ্রব্য নিয়ন্ত্রন অধিদপ্তরের অভিযানে আসাদুজ্জামান তোতা নামের এক ব্যক্তিকে গ্রেফতার করা হয়েছে। এসময় ওই ফ্ল্যাটের একটি খাটের বিছানার নিচে তল্লাসী চালিয়ে ২টি অত্যাধুনিক বিদেশী পিস্তল, গুলি ভর্তি ম্যাগজিন, দুটি ধারালো চাকু এবং ইয়াবা ট্যাবলেট উদ্ধার করে অভিযানকারী দলটি। তবে আটককৃত আসাদুজ্জামান  তোতা দাবী করেন ওই ঘরে তার ছেলে শাহারিয়ার জামান শাওন থাকে, তাই এসব অস্ত্র এবং মাদকের ব্যাপারে তার কিছু জানা নেই। গতকাল বৃহস্পতিবার সকাল ৯টায় গোপন সংবাদের ভিত্তিতে শহরের পুর্ব মজমপুর এলাকার (জিলা স্কুলের সামনে) বিলাসবহুল মনামী ক্রিষ্টাল প্যালেসে মাদক উদ্ধারের জন্য এই অভিযান চালায় মাদকদ্রব্য নিয়ন্ত্রন অধিদপ্তরের একটি দল। এ সময় র‌্যাব এবং মাদকদ্রব্য অধিদপ্তরের কর্মকর্তাদের সামনেই সুকৌশলে পালিয়ে যায় এই ঘটনার সন্দেহভাজন মূল আসামী আটক আসাদুজ্জামান তোতার ছেলে শাহারিয়ার জামান শাওন। কুষ্টিয়া জেলা মাদকদ্রব্য নিয়ন্ত্রন অধিদপ্তরের সহকারী পরিচালক শিরীন আক্তার জানান, গোপন সংবাদের ভিত্তিতে র‌্যাব-১২ কুষ্টিয়ার সহযোগীতায় এবং কুষ্টিয়া সদর উপজেলা কমিশনার (ভুমি) ও নির্বাহী ম্যাজিষ্ট্রেট নাহিদ হাসান খানের উপস্থিতিতে তারা মনামী ক্রিষ্টাল প্যালেস নামে ওই বহুতল ভবনে অভিযান পরিচালনা করে।  এসময় কিছু বুঝে উঠার আগেই মুল সন্দেহভাজন শাহারিয়ার জামান শাওন পালিয়ে যায়। পরে  শাওনের ঘর তল্লাসী করে অস্ত্র গুলি ও ইয়াবা উদ্ধার করা হয়। এই ঘটনায় শাওনের বাবা আসাদুজ্জামান তোতাকে গ্রেফতার করা হয়।

আবরার হত্যা মামলা দ্রুত বিচার  ট্রাইব্যুনালে

ঢাকা অফিস ॥ বুয়েটছাত্র আবরার ফাহাদ হত্যা মামলাটি দ্রুত বিচার ট্রাইব্যুনালে স্থানান্তরের সিদ্ধান্ত নিয়েছে সরকার। আইনমন্ত্রী আনিসুল হক গতকাল বৃহস্পতিবার এ সংক্রান্ত ফাইল অনুমোদন দিয়েছেন বলে মন্ত্রণালয়ের এক সংবাদ বিজ্ঞপ্তিতে বলা হয়েছে। “মামলাটি ঢাকা মহানগর দায়রা জজ আদালত থেকে ঢাকা দ্রুত বিচার  ট্রাইবুনাল-১ এ স্থানান্তরিত হবে।” আবরার হত্যাকান্ডের পর তার পরিবার আইনমন্ত্রীর সঙ্গে সাক্ষাৎ করে মামলাটি জরুরি বিবেচনা করে দ্রুত বিচার ট্রাইব্যুনালে নিষ্পত্তি করতে অনুরোধ জানিয়েছিলেন বলে বিজ্ঞপ্তিতে বলা হয়েছে। হত্যা মামলাটি দ্রুতবিচার ট্রাইব্যুনালে নিতে এর আগে স্বরাষ্ট্র মন্ত্রণালয়ে আবেদন করেন আববারের বাবা ও মামলার বাদী বরকতউল্লাহ। দ্রুত বিচার ট্রাইব্যুনালে যে কোনো মামলা ৯০ কার্যদিবসের মধ্যে নিষ্পত্তি করার বাধ্যবাধকতা রয়েছে। ওই সময়ের মধ্যে নিষ্পত্তি করা না গেলে আরও ৪৫ দিন সময় নিতে পারে আদালত। গত বছরের ৬ অক্টোবর রাতে বুয়েটের শেরেবাংলা হলে ছাত্রলীগের কর্মীদের হাতে পিটুনিতে মারা যান আবরার। পরদিন বরকতউল্লাহ ১৯ জনকে আসামি করে চকবাজার থানায় মামলা করেন। হত্যাকান্ডের পর ক্ষোভ-বিক্ষোভে বুয়েট অচল হয়ে পড়ার পর দ্রুত তদন্ত শেষ করে ১৩ নভেম্বর ২৫ জনের বিরুদ্ধে আদালতে অভিযোগপত্র দেন গোয়েন্দা পুলিশের (ডিবি) লালবাগ জোনের পরিদর্শক মো. ওয়াহিদুজ্জামান। তদন্ত চলাকালে মামলায় অভিযুক্ত ২৫ জনের মধ্যে ২১ জনকে গ্রেপ্তার করে আইনশৃঙ্খলা রক্ষাকারী বাহিনী, এদের মধ্যে আটজন আদালতে স্বীকারোক্তিমূলক জবানবন্দি দেন। পরে আরেকজন আদালতে আত্মসমর্পণ করেন। আসামিদের মধ্যে পলাতক আছেন মোর্শেদুজ্জামান জিসান, এহতেশামুল রাব্বি তানিম ও মোস্তবা রাফিদ নামে তিনজন। এর মধ্যে মোস্তবা রাফিদের নাম এজাহারে ছিল না। তাদের আত্মসমর্পণ করতে সংবাদপত্রে বিজ্ঞপ্তি প্রকাশ হয়েছে।

করোনাভাইরাসে মৃত্যু ছাড়িয়েছে ৪,৬০০

ঢাকা অফিস ॥ আড়াই মাসে মহামারীর আকার পাওয়া নভেল করোনাভাইরাসের প্রাদুর্ভাবে বিশ্বের ১১৮টি দেশ ও অঞ্চলে আক্রান্তের সংখ্যা পৌঁছেছে প্রায় সোয়া লাখে, মৃতের সংখ্যাও ৪ হাজার ৬০০ ছাড়িয়ে গেছে বলে জানিয়েছে বিশ্ব স্বাস্থ্য সংস্থা। এই পরিস্থিতিতে যুক্তরাজ্য ছাড়া ইউরোপের সব দেশের ওপর ভ্রমণ নিষেধাজ্ঞা জারি করেছেন যুক্তরাষ্ট্রের প্রেসিডেন্ট ডনাল্ড ট্রাম্প। কয়েকটি বিশেষ ক্যাটাগরির বাইরে ১৫ এপ্রিল পর্যন্ত বিশ্বের সব দেশের নাগরিকদের ভিসা স্থগিত করেছে ভারত সরকার। বিশ্ব স্বাস্থ্য সংস্থা বুধবার করোনাভাইরাসের প্রাদুর্ভাবকে মহামারী ঘোষণা করার পর যুক্তরাষ্ট্র ভ্রমণ নিষেধাজ্ঞা আরোপ করায় এর তাৎক্ষণিক প্রভাব পড়েছে বিশ্ববাজারে। বড় ধরনের পতন ঘটেছে অধিকাংশ শেয়ার সূচকে। করোনাভাইরাইসের কারণে এমনিতেই চাপে থাকা এয়ারলাইন্সগুলোও যুক্তরাষ্ট্রের নতুন এ নিষেধাজ্ঞার ফলে বড় ধরনের সমস্যায় পড়বে বলে আশঙ্কা করছেন বিশেষজ্ঞরা। আরও নতুন নতুন দেশ ও এলাকায় স্কুল বন্ধের মত সিদ্ধান্ত নিতে বাধ্য হয়েছে সরকারগুলো। বাংলাদেশ স্কুল বন্ধের সিদ্ধান্ত এখনও না নিলেও প্রতিদিনের অ্যাসেম্বলি মাঠের বদলে ক্লাসরুমে করার নির্দেশ দিয়েছে। বিশ্ব স্বাস্থ্য সংস্থার তথ্য অনুযায়ী, বৃহস্পতিবার পর্যন্ত বিশ্বে এ রোগে আক্রান্ত হয়েছে ১ লাখ ২৪ হাজার ৫১৯ জন। আর মৃত্যু হয়েছে ৪ হাজার ৬০৭ জনের।  আক্রান্ত ও মৃত্যুর অধিকাংশ ঘটনা ঘটেছে চীনে, তবে বিশ্বের সবচেয়ে বেশি জনসংখ্যার দেশটি নানা ধরনের কঠোর ব্যবস্থা নিয়ে পরিস্থিতি সামলে ওঠার পর এখন সংক্রমণ বাড়ছে  ইউরোপ, আমেরিকায়। ডিসেম্বরের শেষে চীনের হুবেই প্রদেশের উহান শহরে নভেল করোনাভাইরাস সংক্রমণের প্রথম ঘটনা ধরা পড়ে। সেই হুবেই প্রদেশে বুধবার নতুন রোগীর সংখ্যা আবার এক অংকের ঘরে নেমে এসেছে। চীনের মূলভূখন্ডে বুধবার নতুন করে ১৫ জনের মধ্যে সংক্রমণ ধরা পড়েছে, যাদের মধ্যে আটজন হুবেই প্রদেশের। তাদের নিয়ে চীনে নভেল করোনাভাইরাসে আক্রান্তের মোট সংখ্যা দাঁড়িয়েছে ৮০ হাজার ৯৮০ জনে। দেশটির জাতীয় স্বাস্থ্য কমিশনের তথ্য অনুযায়ী, আক্রান্তদের মধ্যে এ পর্যন্ত ৬২ হাজার ৭৯৩ জন সুস্থ হয়ে বাড়ি ফিরে গেছেন, যা মোট সংক্রমণের প্রায় ৮০ শতাংশ। বুধবার আরও ১১ জনের মৃত্যু হওয়ায় চীনের মূলভূখন্ডে মৃতের সংখ্যা দাঁড়িয়েছে ৩ হাজার ১৬৯ জনে। আর ১৪৩৮ জনের মৃত্যু হয়েছে চীনের বাইরে বিভিন্ন দেশে। চীনের পর আক্রান্ত ও মৃত্যুর সংখ্যা সবচেয়ে বেশি ইউরোপের দেশ ইতালিতে। সেখানে ১২ হাজার ৪৬২ জনের মধ্যে সংক্রমণ ধরা পড়েছে, মৃত্যু হয়েছে ৮২৭ জনের। এছাড়া ইরান ৩৫৪ জন, দক্ষিণ কোরিয়া ৬৬ এবং ফ্রান্সে ৪৮ জনের প্রাণ কেড়ে নিয়েছে নভেল করোনাভাইরাস।

জমি দখলের সংবাদ সংগ্রহকালে কুষ্টিয়ায় যমুনা টেলিভিশনের ক্যামেরাপার্সনের উপর হামলা, ক্যামেরা ভাংচুর

নিজ সংবাদ ॥ যমুনা টেলিভিশন কুষ্টিয়ায় কর্মরত ক্যামেরাপার্সন ইরফান রানার উপরে হামলার ঘটনা ঘটেছে। গতকাল বৃহস্পতিবার দুপুর আড়াইটার দিকে কুষ্টিয়া শহরের বারখাদা ত্রিমোহনী এলাকায় সংবাদ সংগ্রহের চিত্রধারণকালে তার উপরে হামলা চালায় স্থানীয় সন্ত্রাসী ও ভূমিদস্যুরা। জানা যায়, বৃহস্পতিবার দুপুরে যমুনা টেলিভিশনের কাছে সংবাদ আসে বারখাদা ত্রিমোহনী এলাকায় কয়েকজনের ব্যক্তি মালিকানা জায়গায় জোরপূর্বক বালি ফেলে বাড়ি থেকে বেরোনোর পথ বন্ধ করে দেওয়ার চেষ্টাসহ তাদের জোরপূর্বক উচ্ছেদের চেষ্টা করছে কয়েকজন সন্ত্রাসী। এমন সংবাদের ভিত্তিতে পেশাগত দায়িত্ব পালনে ঘটনাস্থলে ছুটে যায় যমুনা টেলিভিশনের ক্যামেরাপার্সন ইরফান রানা। ঘটনাস্থলে পৌঁছে বালি ফেলে জায়গা দখলের স্থানটি ক্যামেরায় ধারণকালে কয়েকজন সন্ত্রাসী এসে কিছু বুঝে ওঠার আগেই ক্যামেরাপার্সনের ওপর  হামলা চালিয়ে ক্যামেরা ছিনিয়ে নেয়। এ সময় ক্যামেরার মেমোরি কার্ড নিয়ে ক্যামেরাটি আছড়ে ভেঙ্গে ফেলা হয়। তাৎক্ষনিক ক্যমেরাপার্সন তার প্রতিনিধিকে ফোন দেওয়ার জন্য চেষ্টা করলে ফোনটি নিয়ে ভেঙ্গে  ফেলে ওই সন্ত্রাসীরা। শুধু ক্যামেরা ভেঙ্গেই নয়, এসময় ইরফান রানার ব্যক্তিগত মোবাইল ফোনটিও ভেঙ্গে ফেলে সন্ত্রাসীরা। তারা তাকে শারীরিকভাবেও নির্যাতন করে।

যমুনা টেলিভিশনের কুষ্টিয়া প্রতিনিধির সহকারী ক্যামেরাপার্সন ইরফান রানা জানান,  আমাদের কাছে খবর আসে ত্রিমোহনী  মোড়ের আগে হিসাব উদ্দিনের উডল্যান্ড ফ্যাক্টরীর সামনে কয়েকজন ব্যক্তির জমির উপর জোর পূর্বক বালি ফেলে দখল  নেওয়াসহ তাদের উচ্ছেদের চেষ্টা করছে স্থানীয় মাহাবুল ইসলাম ও তার সহযোগীরা। এমন সংবাদ পাওয়ার পর পেশাগত দায়িত্ব পালনে ঘটনাস্থলে পৌছে ভিডিও চিত্র ধারন করার সময় দখলবাজরা কোনকিছু বুঝে উঠার আগেই আমার ক্যামেরা ছিনিয়ে নিয়ে মারপিট শুরু করে। এসময় ক্যামেরা ছিনিয়ে ভাঙচুর করার পাশাপাশি ক্যামোরার মেমোরী কার্ড ছিনিয়ে নেওয়া হয়। ভেঙ্গে  ফেলা হয় আমার ব্যক্তিগত মোবাইল ফোনটিও। সে জানায় হামলার ঘটনার সাথে যুক্তদের নাম জানি না তবে তাদের দেখলে আমি চিনতে পারবো।

তবে যাদের জমি নিয়ে ঝামেলা সৃষ্টি হয়েছে তাদের মধ্যে দুই সহদোর খোকন ও তার ভাই সামিউজ্জামান জানান, দীর্ঘদিন ধরে স্থানীয় একটি মহল আমাদের বাড়িঘর উচ্ছেদের জন্য দীর্ঘদিন ধরে তৎপরতা চালাচ্ছে। এর আগে একদিন রাতের আধারে বালি ফেলে আমাদের বাড়ি থেকে বের হওয়ার পথ বন্ধ করে দিয়েছে। বৃহস্পতিবার দুপুরেও বালি ফেলার সময় বিষয়টি সাংবাদিকদের দৃষ্টি আকর্ষন করতে যমুনা টেলিভিশনের কুষ্টিয়া প্রতিনিধি মাহাতাব উদ্দিন লালনকে জানায়। তিনি কুষ্টিয়ার বাইরে থাকায় তার সহকারী ক্যামেরাম্যানকে পাঠানোর কথা বলেন এবং কারা বালি  ফেলছে তাদের ছবিসহ বালি ফেলার ভিডিও ধারন করার সময় কয়েকজন এসে ক্যামেরাম্যানকে মারপিট করেন এবং ক্যামেরা ছিনিয়ে নিয়ে ভেঙ্গে ফেলেন। বিষয়টি নিয়ে যমুনা টেলিভিশনের কুষ্টিয়া প্রতিনিধি মাহাতাব উদ্দিন লালন জানান, বালি ফেলে বাড়িসহ জমি দখলের সংবাদ পাওয়ার পর আমি কুষ্টিয়া শহরের বাইরে অবস্থান করায় তৎক্ষনাৎ আমার ক্যামেরাম্যানকে পাঠাই। ক্যামেরাম্যান ঘটনাস্থলে গিয়ে ভিডিওচিত্র ধারন করার সময় তার উপর হামলার ঘটনা ঘটেছে। একজন সংবাদকর্মীর উপর এই ধরনের হামলার ন্যাক্কারজনক। তিনি দোষীদের দ্রুত সময়ে আটকসহ তাদের বিরুদ্ধে আইনগত ব্যবস্থা নিতে প্রশাসনের দৃষ্টি আকর্ষন করেন। তিনি বলেন এই ঘটনায় মামলা দায়েরের প্রস্তুতি চলছে।

কুষ্টিয়া মডেল থানার ভারপ্রাপ্ত অফিসার্স ইনচার্জ আননূর জায়েদ জানান, মৌখিকভাবে সংবাদ প্রাপ্তির পর দ্রুত ঘটনাস্থলে অভিযান চালিয়ে দু’জনকে আটক করা হয়েছে। তারা বর্তমানে পুলিশী  হেফাজতে রয়েছে। এখনো অভিযোগ পাইনি। লিখিত অভিযোগ  পেলে দোষীদের বিরুদ্ধে কঠোর আইনগত ব্যবস্থা গ্রহন করা হবে।

অভিযোগ আছে স্থানীয় একটি প্রতিষ্ঠানের ইন্ধনে ভাড়াটে সন্ত্রাসীরা ওই এলাকার লোকজনকে হুমকী দিয়ে তাদের ভিটেবাড়ি ছেড়ে  যেতে বাধ্য করছেন। এই ঘটনার সাথে ও প্রভাবশালীর  যোগসাজেশ রয়েছে। এবিষয়ে গণমাধ্যমকর্মীসহ প্রশাসনের দৃষ্টি আকর্ষন করেছেন স্থানীয়রা। ন্যাক্কারজনক এই ঘটনায় নিন্দা জানিয়ে দোষীদের দ্রুত গ্রেফতারসহ এই ধরনের ঘটনা যাতে না ঘটে এই ব্যাপারে বিবৃতি দিয়েছে কুষ্টিয়া প্রেসক্লাব, টেলিভিশন জার্নালিস্ট এ্যাসোসিয়েশন কুষ্টিয়া, টেলিভিশন ক্যামেরাপার্সন এ্যাসোয়িশেন কুষ্টিয়াসহ কুষ্টিয়ায় কর্মরত বিভিন্ন গণমাধ্যমের সাংবাদিকরা।

দৌলতপুরে মুজিববর্ষ উপলক্ষে প্রতিবন্ধীদের মাঝে হুইল চেয়ার বিতরণ   

দৌলতপর প্রতিনিধি ॥ কুষ্টিয়ার দৌলতপুরে মুজিববর্ষ উপলক্ষে প্রতিবন্ধীদের মাঝে হুইল চেয়ার বিতরণ করা হয়েছে। বুধবার বিকেলে উপজেলা পরিষদ চত্বরে উপস্থিত প্রতিবন্ধীদের মাঝে হুইল চেয়ার বিতরণ করেন দৌলতপুর উপজেলা চেয়ারম্যান এ্যাড. এজাজ আহমেদ মামুন ও দৌলতপুর উপজেলা নির্বাহী অফিসার শারমিন আক্তার। এসময় উপস্থিত ছিলেন উপজেলা পরিষদের মহিলা ভাইস চেয়ারম্যান সোনালী খাতুন আলেয়া ও দৌলতপুর প্রকল্প বাস্তবায়ন কর্মকর্তা সাইদুর রহমান। মুজিববর্ষ উপলক্ষে ১৮ জন প্রতিবন্ধীর মাঝে হুইল চেয়ার বিতরণ করা হয়। এর আগে বিভিন্ন বিদ্যালয়ের ছাত্রীদের জন্য প্রধান শিক্ষকদের হাতে স্যানিটারী ন্যাপকিন তুলে দেন দৌলতপুর উপজেলা চেয়ারম্যান এ্যাড. এজাজ আহমেদ মামুন ও দৌলতপুর উপজেলা নির্বাহী অফিসার শারমিন আক্তার। এসময় দৌলতপুর আওয়ামী লীগের তথ্য ও গবেষাণ সম্পাদক টিপু নেওয়াজসহ বিভিন্ন বিদ্যালয়ের প্রধান শিক্ষকগণ উপস্থিত ছিলেন।

পরিস্কার-পরিচ্ছন্ন অভিযানে কুষ্টিয়া সদর উপজেলা চেয়ারম্যান আতাউর রহমান আতা

মুজিববর্ষকে সামনে রেখে আমরা পরিচ্ছন্ন বাংলাদেশ উপহার দিতে চাই

সুজন কর্মকার ॥ মুজিববর্ষকে সামনে রেখে ‘পরিচ্ছন্ন গ্রাম-পরিচ্ছন্ন শহর’ কার্যক্রম বাস্তবায়নের লক্ষ্যে, পরিস্কার-পরিচ্ছন্ন অভিযান করেছেন, কুষ্টিয়া সদর উপজেলা পরিষদের চেয়ারম্যান ও শহর আওয়ামীলীগের সাধারণ সম্পাদক আতাউর রহমান আতা। আতাউর রহমান আতা বলেন, মুজিববর্ষকে সামনে রেখে আমরা পরিচ্ছন্ন বাংলাদেশ উপহার দিতে চাই। আমরা অনেক দূর এগিয়েছি। আমাদের নতুন প্রজন্মকে উন্নত-পরিচ্ছন্ন বাংলাদেশের চেতনায় উদ্বুদ্ধ করতে হবে। পরিচ্ছন্ন জনপদ গড়ে তুলতে সর্বসাধারণের মধ্যে পরিষ্কার-পরিচ্ছন্নতার দৈনন্দিন অভ্যাস গড়ে তুলতে হবে। কুষ্টিয়া সদর উপজেলা প্রশাসনের আয়োজনে, ১২ মার্চ বৃহস্পতিবার সকালে কুষ্টিয়া শহরের মজমপুর গেটে এ পরিস্কার-পরিচ্ছন্ন অভিযান করা হয়। এ সময় কুষ্টিয়া সদর উপজেলা পরিষদের নির্বাহী অফিসার জুবায়ের হোসেন চৌধুরী সহ অন্যান্যরা উপস্থিত ছিলেন।

কুষ্টিয়ায় বিশেষ কল্যাণ সভায় পুলিশ সুপার এস এম তানভীর আরাফাত

জনসাধারণের সাথে পুলিশের উত্তম ব্যবহার করতে হবে

নিজ সংবাদ ॥ কুষ্টিয়ায় এএসআই, এসআই এবং পুলিশ পরিদর্শকদের নিয়ে বিশেষ কল্যাণ সভা অনুষ্ঠিত হয়েছে। গতকাল ১২ মার্চ বৃহস্পতিবার বেলা ১১ টায় কুষ্টিয়া জেলা পুলিশের আয়োজনে পুলিশ লাইন্স সম্মেলন কক্ষে এ বিশেষ কল্যাণ সভা অনুষ্ঠিত হয়। এতে প্রধান অতিথি ছিলেন কুষ্টিয়ার পুলিশ সুপার এস এম তানভীর আরাফাত পিপিএম (বার)। তিনি বলেন, জনসাধারণের সাথে পুলিশের উত্তম ব্যবহার করতে হবে। পুলিশ সুপার এস এম তানভীর আরাফাত অফিসার ফোর্সদের উদ্দেশ্যে শুদ্ধাচার, শৃংখলা, সরকারী সম্পত্তির সঠিক ব্যবহার, দুর্নীতি পরিহার, স্বাস্থ্য সচেতনতা, উত্তম চরিত্র গঠন, পেশাদারিত্বের সাথে দায়িত্ব পালন, পরিস্কার পরিচ্ছন্নতাসহ বিভিন্ন দিক নির্দেশনামূলক বক্তব্য প্রদান করেন। একই সাথে ফেব্র“য়ারি মাসের মাসিক অপরাধ পর্যালোচনা সভা অনুষ্ঠিত হয়। অপরাধ পর্যালোচনা সভায় ফেব্র“য়ারি মাসের পারফরমেন্স নিয়ে আলোচনা করা হয়। এ সময়ে আরো উপস্থিত ছিলেন অতিরিক্ত পুলিশ সুপার মোহাম্মদ মোস্তাফিজুর রহমান (প্রশাসন ও অপরাধ), গোলাম সবুর (জেলা বিশেষ শাখা), আতিকুল ইসলাম (সদর সার্কেল)সহ জেলা পুলিশের অন্যান্য কর্মকর্তা ও সদস্যগণ।

 ভিডিও কনফারেন্সের মাধ্যমে কুষ্টিয়ার ৩টি সহ ২৫টি সেতু  উদ্বোধনকালে প্রধানমন্ত্রী

মুজিব বর্ষের প্রাক্কালে বাংলাদেশ যোগাযোগ ক্ষেত্রে এক নতুন যুগে প্রবেশ করল

ঢাকা অফিস ॥ প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা যাত্রাবাড়ী-মাওয়া-ভাঙ্গা রুটে দেশের প্রথম এক্সপ্রেসওয়ের উদ্বোধন করেছেন। প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা গতকাল বৃহস্পতিবার বেলা ১১টায় তাঁর সরকারি বাসভবন গণভবন থেকে ভিডিও কনফারেন্সের মাধ্যমে আনুষ্ঠানিকভাবে এই এক্সপ্রেসওয়ের উদ্বোধনকালে এটিকে জাতির জন্য মুজিব বর্ষের উপহার বলে উল্লেখ করেন। ভ্রমণের সময় কমানোর পাশাপাশি দক্ষিণ-পশ্চিমাঞ্চলের জেলাগুলোর জনগণের জন্য আরামদায়ক ও নিরবচ্ছিন্ন যাতায়াত নিশ্চিত করার লক্ষ্যে আধুনিক সব সুযোগ-সুবিধা সংবলিত ৫৫ কিলোমিটার দীর্ঘ এই এক্সপ্রেসওয়ে নির্মাণ করা হয়েছে। আর এর মাধ্যমে মুজিব বর্ষের প্রাক্কালে বাংলাদেশ যোগাযোগ ক্ষেত্রে এক নতুন যুগে প্রবেশ করল। একই সঙ্গে প্রধানমন্ত্রী ওয়েস্টার্ন বাংলাদেশ ব্রিজ ইমপ্রুভমেন্ট প্রকল্পের আওতায় খুলনা, বরিশাল ও গোপালগঞ্জ সড়ক জোনে নির্মিত ২৫টি সেতু এবং তৃতীয় কর্ণফুলী সেতু নির্মাণ (সংশোধিত) প্রকল্পের আওতায় ৬ লেনবিশিষ্ট ৮ কিলোমিটার তৃতীয় কর্ণফুলী (শাহ আমানত সেতু) সেতুর এপ্রোচ সড়ক উদ্বোধন করেন। অনুষ্ঠানে সড়ক পরিবহন ও সেতুমন্ত্রী ওবায়দুল কাদের এবং সেনা প্রধান জেনারেল আজিজ আহমেদ বক্তৃতা করেন। অনুষ্ঠান সঞ্চালনা করেন প্রধানমন্ত্রীর মুখ্য সচিব ড. আহমদ কায়কাউস। সড়ক পরিবহন ও মহাসড়ক বিভাগের সচিব মো. নজরুল ইসলাম প্রকল্প বিষয়ে তথ্য চিত্র উপস্থাপন করেন। রেলপথ মন্ত্রী মো. নুরুল ইসলাম সুজন, প্রধানমন্ত্রীর রাজনৈতিক উপদেষ্টা এইচটি ইমাম এবং মহিলা ও শিশু বিষয়ক প্রতিমন্ত্রী ফজিলাতুন নেসা ইন্দিরা অনুষ্ঠানে উপস্থিত ছিলেন। পিএমও’র এসডিজি বিষয়ক মুখ্য সমন্বয়ক জুয়েনা আজিজ,পিএমও সচিব তোফাজ্জল হোসেন মিয়া, প্রেস সচিব ইহসানুল করিম ও অন্যান্যের মধ্যে উপস্থিত ছিলেন। প্রকল্প কর্মকর্তারা বলছেন, ‘আন্তর্জাতিক মানের এই এক্সপ্রেসওয়ে দুইটি সার্ভিস লেনের মাধ্যমে দেশের দক্ষিণ পশ্চিমাঞ্চলের সঙ্গে রাজধানীকে যুক্ত করবে। এখন মাত্র ২৭ মিনিটে ঢাকা থেকে মাওয়ায় যাওয়া যাবে।’ প্রকল্পের বিবরণ অনুসারে, এক্সপ্রেসওয়েতে পাঁচটি ফ্লাইওভার, ১৯টি আন্ডারপাস এবং প্রায় ১০০টি সেতু এবং কালভার্ট রয়েছে, যা দেশের ব্যবসা- বাণিজ্য বাড়িয়ে জাতীয় অর্থনীতিতে অবদান রাখবে। এটিতে মাওয়া থেকে ৩৫ কিলোমিটার দীর্ঘ যাত্রাবাড়ী চৌরাস্তা এবং ২০ কিলোমিটার দীর্ঘ পাচ্চর থেকে ভাঙ্গা পর্যন্ত এক্সপ্রেসওয়ে পুরো খুলনা ও বরিশাল বিভাগ এবং ঢাকা বিভাগের একটি অংশের উন্নয়নে উল্লেখযোগ্য অবদান রাখবে বলে আশা করা হচ্ছে। পাশাপাশি ঢাকা শহর এবং দেশের দক্ষিণ-পশ্চিম অংশের মধ্যে যোগাযোগ জোরদার করবে। বরিশাল বিভাগের ছয় জেলা, খুলনা বিভাগের ১০টি জেলা এবং ঢাকা বিভাগের ছয় জেলাসহ দেশের দক্ষিণ-পশ্চিমাঞ্চলের ২২টি জেলার মানুষ সরাসরি এই আন্তর্জাতিক মানের এক্সপ্রেসওয়ে থেকে উপকৃত হবেন। আধুনিক এক্সপ্রেসওয়ের দুটি অংশ ৬ দশমিক ১৫ কিলোমিটার দীর্ঘ পদ্মা সেতুর সঙ্গে সংযুক্ত হবে, যা বর্তমানে নির্মাণাধীন। দেশের দীর্ঘতম পদ্মা সেতুর চার কিলোমিটার গতকাল মঙ্গলবার ২৬তম স্প্যান বসানোর পরে ইতোমধ্যে দৃশ্যমান হয়েছে। ২০২১ সালের জুনের মধ্যে ট্র্যাফিকের জন্য ব্রিজটি চালু করার পরিকল্পনা রয়েছে সরকারের। পদ্মা সেতুর নির্মাণ কাজ শেষ হয়ে গেলে, কোনও ভ্রমণকারীকে ভাঙ্গা থেকে ঢাকা আসা এবং যেতে এক ঘন্টা সময় লাগবে না। এই হাইওয়েতে আগামী ২০ বছরের জন্য ক্রমবর্ধমান ট্রাফিকের পরিমাণ বিবেচনা করে ঢাকা-খুলনা মহাসড়কে প্রায় ১১০০৩ দশমিক ৯০ কোটি টাকা ব্যয়ে এক্সপ্রেসওয়েটি নির্মিত হয়েছে। সড়ক ও জনপথ বিভাগ এবং বাংলাদেশ সেনাবাহিনী যৌথভাবে ২০১৬ সালে চারটি জেলা- ঢাকা, মুন্সীগঞ্জ, মাদারীপুর এবং ফরিদপুরে এক্সপ্রেসওয়ে প্রকল্পের বাস্তবায়ন শুরু করে এবং এটি নির্ধারিত সময়সীমার তিন মাস আগে নির্মাণ কাজ সম্পন্ন করে। নির্মাণ কাজ সম্পন্ন করার নির্ধারিত সময়সীমা ছিল ২০২০ সালের ২০ জুন। এক্সপ্রেসওয়ের পাঁচটি ফ্লাইওভারের মধ্যে একটি ২ দশমিক ৩ কিলোমিটার কদমতলী-বাবুবাজার লিংক রোড ফ্লাইওভার রয়েছে। অন্য চারটি ফ্লাইওভার হলো আবদুল্লাহপুর, শ্রীনগর, পুলিয়াবাজার এবং মালিগ্রামে। ৫৫ কিলোমিটার এক্সপ্রেসওয়েতে এক্সপ্রেসওয়ের পাঁচটি ফ্লাইওভারের মধ্যে একটি ২.৩ কিলোমিটার কদমতলী-বাবুবাজার লিংক রোড ফ্লাইওভার রয়েছে। অন্য চারটি ফ্লাইওভার হলো আবদুল্লাহপুর, শ্রীনগর, পুলিয়াবাজার এবং মালিগ্রামে। ৫৫ কিলোমিটার এক্সপ্রেসওয়েতে জুরাইন, কুচিয়ামোড়া, শ্রীনগর ও আটিতে চারটি রেলওয়ে ওভার ব্রিজ রয়েছে এবং চারটি বড় সেতু রয়েছে যার মধ্যে ৩৬৩ মিটার ধলেশ্বরী -১, ৫৯১ মিটার ধলেশ্বরী -২, ৪৬৬-মিটার আড়িয়াল খান এবং ১৩৬-মিটার কুমার সেতু। পরে পৃথক এক ভিডিও কনফারেন্সে প্রধানমন্ত্রী এদিন মুজিব বর্ষ, ২০২০ উদযাপন উপলক্ষে ‘পরিচ্ছন্ন গ্রাম-পরিচ্ছন্ন শহর’ কর্মসূচির আওতায় দেশব্যাপী পরিচ্ছন্নতা কার্যক্রমের উদ্বোধন করেন।

কুষ্টিয়া সদর উপজেলার ৩টি সেতু উদ্বোধন করলেন প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা

নিজ সংবাদ ॥ মুজিববর্ষ উপলক্ষে ওয়েস্টার্ণ বাংলাদেশ ব্রিজ ইমপ্র“ভমেন্ট প্রকেল্পর আওতায় নির্মিত ২৫টি সেতু উদ্বোধনকল্পে কুষ্টিয়া জেলার সদর উপজেলার জি.কে, বালিয়াপাড়া ও বিত্তিপাড়া সেতুর শুভ উদ্বোধন করা হয়েছে। গতকাল  বৃহস্পতিবার সকালে গণভবন থেকে প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা ভিডিও কনফারেন্সের মাধ্যমে এ সব সেতু উদ্বোধন ঘোষনা করেন। এ সময় গণভবনে সড়ক পরিবহণ ও সেতুমন্ত্রী ওবায়দুল কাদেরসহ সংশ্লিষ্ট কর্মকর্তাগণ উপস্থিত ছিলেন।

কুষ্টিয়ার ৩টি সেতু উদ্বোধন উপলক্ষ্যে জেলা প্রশাসকের সম্মেলন কক্ষে প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা ভিডিও কনফারেন্স অনুষ্ঠানে কুষ্টিয়া পক্ষে সঞ্চালনা করেন জেলা প্রশাসক মোঃ আসলাম হোসেন। প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা ভিডিও কনফারেন্স অনুষ্ঠানে অন্যান্যের মধ্যে উপস্থিত ছিলেন কুষ্টিয়ার পুলিশ সুপার এসএম তানভীর আরাফাত, কুষ্টিয়া পৌরসভার  মেয়র আনোয়ার আলী, জেলা পরিষদের চেয়ারম্যান হাজী রবিউল ইসলাম, জেলা আওয়ামীলীগের সভাপতি আলহাজ্ব সদর উদ্দিন খান, সাধারণ সম্পাদক আজগর আলী, শহর আওয়ামীলীগের সভাপতি তাইজাল আলী খান, সদর উপজেলা পরিষদের চেয়ারম্যান আতাউর রহমান আতা, কুষ্টিয়া প্রেসক্লাবের সাধারণ সম্পাদক আনিসুজ্জামান ডাবলু, বাংলাদেশ সাংবাদিক ইউনিয়ন কুষ্টিয়ার সভাপতি রাশেদুল ইসলাম বিপ্লব, স্থানীয় সরকারের উপ-পরিচালক মৃনাল কান্তি দে, অতিরিক্ত জেলা প্রশাসক রাজস্ব মোহাম্মদ ওবায়দুর রহমান, অতিরিক্ত  জেলা মাজিস্ট্রেট লুৎফুন নাহার,  কুষ্টিয়া চেম্বার অব কর্মাস এন্ড ইন্ডাষ্টিজের সহ-সভাপতি এস এম কাদেরী শাকিলসহ, মুক্তিযোদ্ধা কমান্ডার রফিকুল আলম টুকুসহ জেলা বিভিন্ন সরকারী দপ্তরের প্রধান, রাজনৈতিক, সামাজিক, সাংস্কৃতিক ও সুশীল সমাজের প্রতিনিধিবৃন্দ এ সময় উপস্থিত ছিলেন। পরে প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনাসহ অন্যান্য অতিথিবৃন্দ লালন একাডেমির শিশু শিল্পী স্বাধীন বাংলার কন্ঠে গাওয়া “ লোকে বলে লালন ফকির কোন জাতের ছেলে” লালন সংগীত উপভোগ করেন।

কোহলি থাকলে ভারত আইসিসি ট্রফি জিততে পারবে না

ক্রীড়া প্রতিবেদক ॥ বিরাট কোহলি যতদিন অধিনায়ক হিসেবে থাকবেন ততোতিন ভারত আইসিসির কোনো টুর্নামেন্টে শিরোপা জিতেতে পারবে না। এমটিই দাবি করছেন ভারতীয় সমর্থকরা। সদ্য শেষ হওয়া ওমেন্স বিশ্বকাপের আগে ভারতীয় নারী দলকে শুভেচ্ছা জানিয়েছিলেন বিরাট কোহলি। কিন্তু তার শুভেচ্ছা বার্তা পাওয়ায় ফাইনালে উঠেও শিরোপা জিততে পারেনি ভারত। যে কারণে বিরাট কোহলিকেই দোষারোপ করা হচ্ছে। ভারতীয় সমর্থকদের দাবি কোহলি শুভেচ্ছা বার্তা জানালে দল হেরে যায়। যেমনটা হয়েছে এ বারের নারী টি-টোয়েন্টি বিশ্বকাপ ফাইনালে। আর এ কারণে কোহলির বিরুদ্ধে সই সংগ্রহ করা শুরু করেছে চেঞ্জ ডট ওআরজি নামে একটি ওয়েব সাইট। তারা কোহলিকে অশুভ দাবি করেছে। তাদের দাবি কোহলি শুভেচ্ছা জানালে ভারতীয় দল আইসিসির কোনো টুর্নামেন্টে শিরোপা জিততে পারবে না। কোহলিকে শুধু শুভেচ্ছা বার্তা দেয়া থেকে আটকানোই নয়, ভারতীয় ক্রিকেট দলের অধিনায়কের পদ থেকেও সরাতে সই সংগ্রহ শুরু করেছে চেঞ্জ ডট ওআরজি। তারা কোহলির পরিবর্তে তারকা ওপেনার রোহিত শর্মাকে ভারতীয় দলের অধিনায়ক করার জোর দাবি তুলেছে। সূত্র: আনন্দবাজার পত্রিকা

 

পাকিস্তানের ‘সর্বকালের’ সেরা ব্যাটসম্যান কে, জানালেন ইনজামাম

ক্রীড়া প্রতিবেদক ॥ পাকিস্তানের সর্বকালের সেরা ব্যাটসম্যান বেছে নিয়েছেন দলটির সাবেক অধিনায়ক ইনজামাম উল হক। তিনি বলেছেন, দেশটির ক্রিকেট ইতিহাসে সেরা ওয়ানডে ব্যাটসম্যান হচ্ছেন সাঈদ আনোয়ার। তার হার্ডহিটিং ব্যাটিং সক্ষমতার কথা উল্লেখ করে ইনজামাম বলেন, পাক বাঁহাতি ওপেনার যেসব শট খেলতেন, অন্যরা সেগুলোর স্বপ্ন দেখতেন বা দেখেন। যেটা তাকে সাদা বলের অন্যতম সেরা ব্যাটসম্যানে পরিণত করে। সাঈদ আনোয়ার পাকিস্তানের হয়ে ২৪৭টি ওডিআই খেলে করেন ৮৮২৪ রান। এ পথে ২০ সেঞ্চুরি ও ৪৩টি হাফসেঞ্চুরি হাঁকান তিনি। সীমিত ওভারের ক্রিকেটে তার ক্যারিয়ার সেরা ইনিংস ১৯৪। ১৯৯৭ সালে চেন্নাইয়ে ভারতের বিপক্ষে এ রান করেন তিনি, যা দীর্ঘদিন একদিনের ক্রিকেটে ব্যক্তিগত সর্বোচ্চ রানের রেকর্ড ছিল।

নিজের জনপ্রিয় ইউটিউব চ্যানেলে ইনজামাম বলেন, সাঈদ যেরকম ব্যাটিং করতেন, আমরা সবাই সেরকম করার ইচ্ছা পোষণ করতাম। রাতে আমরা যেসব শট স্বপ্নে দেখতাম, সকালে সেসব খেলতেন উনি। ইনজি বলেন, লোকজন বলতেন, পাকিস্তান ক্রিকেট ইতিহাসে সব ব্যাটসম্যানের মধ্যে আমার প্রতিভা ছিল বেশি। কিন্তু সেই তুলনায় আমি বিচ্ছুরণ ঘটাতে পারিনি। কিন্তু আমি বিশ্বাস করি, সাঈদের যে ক্রিকেটীয় মেধা ছিল, তা অন্য কারো নেই বা ছিল না। তিনি বলেন, যখন আনোয়ার ব্যাট করতেন, তখন মনে হতো ক্রিকেট কত সহজ। যেন বল সিম বা সুইং-ই করে না। যখন তার সঙ্গে ক্রিজে থাকতাম, তখন তা উপভোগ করতাম। উনি সবসময় বোলারদের চাপে রাখতেন এবং নিজে আধিপত্য বিস্তার করে খেলতেন। সাবেক পাক প্রধান নির্বাচক বলেন, আমি মনে করি না, পাকিস্তানে এরকম ব্যাটসম্যান ছিল বা আছে। দেশের সর্বকালের সেরা ব্যাটার সাঈদ। ইনজুরি মুক্ত থাকলে যার দলে থাকা নিশ্চিত ছিল। সাবেক সতীর্থের উচ্চ প্রশংসা করলেও পাকিস্তান ক্রিকেট ইতিহাসে ওয়ানডেতে সর্বোচ্চ রান ইনজামেরই। বর্ণিল ক্যারিয়ারে ১১,৭৩৯ রান সংগ্রহ করেন ডানহাতি ব্যাটসম্যান। দেশের হয়ে ১০,০০০ রান অতিক্রম করা একমাত্র ব্যাটার তিনিই। তথ্যসূত্র: হিন্দুস্তান টাইমস।

সেই ব্যক্তি যে কোনো দিক থেকে অনিকের চেয়ে ভালো: শাবনূর

বিনোদন বাজার ॥ শাবনূর এক চীনা নাগরিককে বিয়ে করেছিলেন বলে অভিযোগ তার স্বামী অনিক মাহমুদের। কিন্তু অনিকের এ দাবিকে ভিত্তিহীন বলে উড়িয়ে দিয়েছেন এ অভিনেত্রী।

এভাবে দুজনের মধ্যে পাল্টাপাল্টি অভিযোগ চলছেই। অনিক জানান, শাবনূর ছিলেন বিবাহিত। তাকে বিয়ে করার আগে এক চীনা নাগরিককে বিয়ে করেছিলেন শাবনূর। ইস্কাটনের বাসায় ওই চীনা নাগরিকের সঙ্গে কয়েকবার হাতেনাতে ধরাও পড়েন শাবনূর।

অনিকের এমন দাবির পরিপ্রেক্ষিতে শাবনূর বলেন, চীনা নাগরিককে বিয়ে করলে অনিককে কেন বিয়ে করব? অনিক যার দিকে আঙুল তুলছেন, সেই ব্যক্তি যে কোনো দিক থেকে অনিকের চেয়ে ভালো। অনিক একটা বাজে ছেলে এবং নেশাগ্রস্ত।

এদিকে শাবনূরের তালাকনামা পাঠানোর ১৫ মাস আগে আয়েশা আকতার নামে এক নারীকে বিয়ে করেন অনিক মাহমুদ। গণমাধ্যমকে এমন তথ্য দিয়ে ঢাকাই চলচ্চিত্রের এই জনপ্রিয় অভিনেত্রী বলেন, আমি আসলে এসব নিয়ে কথা বলতে চাইনি। অনিক আমাকে বাধ্য করেছে।

তিনি বলেন, আমি অনেক ভেবেচিন্তে বিচ্ছেদের সিদ্ধান্ত নিয়েছিলাম। ভাবছিলাম, বিষয়টি চুপচাপ শেষ হয়ে যাক; কিন্তু অনিকের কথাবার্তা একেবারে অগ্রহণযোগ্য। উল্টাপাল্টা কথা বলে দেশের মানুষ ও ভক্তদের কাছে আমার ইমেজ নষ্ট করতে চাইছিল, এমনটি তো হতে দিতে পারি না।

এমনকি তাকে নিয়ে কথা বলে বিভ্রান্তি ছড়াতে চাইলে আইনগত ব্যবস্থা নেয়ারও হুশিয়ারি দেন এই চলচ্চিত্র অভিনেত্রী।

তবে এর আগে শাবনূর ছাড়া কাউকে বিয়ে করেননি বলে জানিয়েছিলেন অনিক মাহমুদ। শারমীন নাহিদ নূপুর ওরফে শাবনূর জানান, তিনি অনিককে বিয়ে করে ভুল করেছেন। পরিবারের সবাই বিয়ের জন্য চাপ দিচ্ছিলেন, তাই তিনি বিয়ে করেছেন।

শাবনূর বললেন, আমারও বিয়ে করার ঝোঁক তৈরি হয়। এর পর বিয়ে করেছি। বিয়ের কিছু দিন পরই মনে হয়েছে, বিয়ে করে ভুল করেছি।

অনিকের ব্যাপারে যেসব তথ্য গণমাধ্যমে শাবনূর পাঠান, তাতে ২০১৮ সালের সেপ্টেম্বরে পাসপোর্টে দেয়া তথ্য যাছাই করে দেখা গেছে, আয়েশা আকতার নামে একজন অনিক মাহমুদের স্ত্রী আছে।

অবশেষে ভেঙেই গেল একসময়ের জনপ্রিয় চিত্রনায়িকা শাবনূরের সংসার। গত কয়েক বছর ধরেই অবশ্য গুঞ্জন ছিল, স্বামী অনিকের সঙ্গে থাকছেন না তিনি। অনেকে বলেছেন, সংসার ভেঙে গেছে। তবে সেসব গুঞ্জন বরাবরই অস্বীকার করে এসেছেন এ নায়িকা।

এবার সেসব গুঞ্জন নিজেই সত্যি প্রমাণ করলেন শাবনূর। বনিবনা না হওয়ায় স্বামী অনিক মাহমুদ হৃদয়কে তালাক দিয়েছেন তিনি।

২৬ জানুয়ারি এ নায়িকার স্বাক্ষর করা একটি তালাক নোটিশ অ্যাডভোকেট কাওসার আহমেদের মাধ্যমে পাঠানো হয়েছে স্বামীর ঠিকানায়। তালাক নোটিশের অনুলিপি অনিকের এলাকার আইন ও সালিশ কেন্দ্রের চেয়ারম্যান এবং কাজী অফিস বরাবরও পাঠানো হয়েছে।

নোটিশে সাক্ষী হিসেবে নুরুল ইসলাম ও শামীম আহম্মদ নামে দুজনের নাম উল্লেখ রয়েছে।

নব্বই দশকের শুরুতে পরিচালক এহতেশামের হাত ধরে চলচ্চিত্রে আগমন ঘটে শাবনূরের। এর পর সালমান শাহর সঙ্গে জুটি গড়ে তুমুল আলোচনার জন্ম দেন। গত ২৬ বছর ধরেই নিজের অস্তিত্ব টিকিয়ে রেখেছেন শাবনূর।

প্রসঙ্গত, ২০১১ সালের ৬ ডিসেম্বর অনিক মাহমুদ হৃদয় নামের এক ব্যবসায়ীর সঙ্গে আংটিবদল করেন জনপ্রিয় চিত্রনায়িকা শাবনূর। এর পর ২০১২ সালের ২৮ ডিসেম্বর তারা বিয়ে করেন।

সেই সংসারে ২০১৩ সালের ২৯ ডিসেম্বর আইজান নিহান নামে এক পুত্রসন্তানের জন্ম হয়। এ সন্তানকে নিয়ে বছরের বেশিরভাগ সময় অস্ট্রেলিয়ায় কাটান এ চিত্রনায়িকা। দেশটির নাগরিকত্বও পেয়েছেন বলে তার ঘনিষ্ঠরা জানিয়েছেন।

অভিনেত্রী নাসরিন হাসপাতালে

বিনোদন বাজার ॥ জনপ্রিয় অভিনেত্রী নাসরিন গুরুতর অসুস্থ। তাকে রাজধানীর মনোয়ারা হাসপাতালে ভর্তি করা হয়েছে। দুয়েক দিনের মধ্যেই তার অস্ত্রোপচার করা হবে।

চিকিৎসকরা জানান, নাসরিন দীর্ঘদিন ধরে পেটে টিউমার সমস্যায় ভুগছেন। টিউমার এখন আয়তনে অনেক বড় হয়ে গেছে। এখনই অস্ত্রোপচারের মাধ্যমে টিউমার অপসারণ করা না গেলে মারাত্মক সমস্যা দেখা দিতে পারে।

জানা গেছে, নাসরিনের টিউমারটি অনেক বড় আকার ধারণ করেছে। শরীরে রক্তশূন্যতা চলছে। এরই মধ্যে কয়েক ব্যাগ রক্ত পুশ করা হয়েছে। আরও রক্ত লাগবে। তার সুস্থতার জন্য দোয়া চেয়েছে নাসরিনের পরিবার।

নাসরিক সহ¯্রাধিক ছবিতে অভিনয় করেছেন। পার্শ্বচরিত্রে অভিনয় করা নাসরিন কৌতুক অভিনেতা দিলদারের সঙ্গে জুটি গড়ে খ্যাতির আসনে অধিষ্ঠিত হন। এর পর নানামুখী চরিত্রে অভিনয় করেন তিনি।

হাসিবুর রেজা কল্লোল পরিচালিত ‘সত্তা’ সিনেমায় অনন্য অভিনয়ের জন্য নাসরিন শ্রেষ্ঠ পার্শ্ব অভিনেত্রী হিসেবে বাচসাস পুরস্কার অর্জন করেন।

নাসরিন দুই সন্তানের জননী। স্বামী রিয়েল খানও চলচ্চিত্র অভিনেতা।

সারার সঙ্গে কেন অস্বাভাবিক সম্পর্ক হবে : কারিনা 

বিনোদন বাজার ॥ সারা আলী খানের সঙ্গে কারিনা কাপুর খানের সম্পর্কটা বেশ ভালোই দেখা যায়। কিন্তু তাদের এই সম্পর্ক নিয়ে অনেক ধরনের নেতিবাচক মন্তব্য এসেছে অনেকবার। কিছুদিন আগে ইনস্টাগ্রামে পা রেখেছেন কারিনা। ইনস্টাগ্রামে সাইফ, তৈমুর, কারিশমা, ববিতার ছবি শেয়ার করে ফেলেছেন কারিনা। শুধু তাই নয়, ইনস্টাগ্রামে মালাইকা অরোরা, সোহা আলী খান, ইব্রাহিমসহ কাছের মানুষদের ফলো করতে শুরু করেছেন কারিনা।

কিন্তু সারা আলী খান নেই কারিনার ওই তালিকায়। অন্যদিকে সারা আলী খানও কারিনাকে ফলো করেন না। ফলে সারার রাস্তাই বেছে নিয়েছেন কারিনা। তিনিও সাইফের প্রথম পক্ষের মেয়েকে ফলো করেন না নিজের ইনস্টাগ্রাম থেকে। বিষয়টি প্রকাশ্যে আসার পর বেশ গুঞ্জন শুরু হয়েছে।

এদিকে সাইফ আলী খান যখন কারিনার সঙ্গে গাঁটছড়া বাঁধেন, সেই সময় সেখানে হাজির হন সারা। ভাই ইব্রাহিমকে সঙ্গে নিয়েই বাবার দ্বিতীয় পক্ষেরে বিয়ে এবং রিসেপশনে হাজির হন অমৃতা সিংয়ের মেয়ে। কারিনার সঙ্গে তার সম্পর্কও বেশ ভালো বলেই জানা যায়। সম্প্রতি কারিনার রেডিও শোয়েও হাজির হন সারা। পাশাপাশি নিজের স্টাইলিস্টকে দিয়ে সারার লুকও পাল্টে দেন কারিনা। এতকিছুর পরও সারা এবং কারিনার সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে সম্পর্ক কী ভালো না, তাই নিয়ে জোর গুঞ্জন শুরু হয়েছে।

কারিনা বলেন, ‘সারার সঙ্গে আমার সম্পর্কটা গণমাধ্যমে নেতিচাকভাবে উঠে আসার কারণ আমি জানি না। সারা সঙ্গে কেন অস্বাভাবিক সম্পর্ক হবে! সারা আমার ভালো বন্ধু।’

বর্তমানে লালা সিং চাড্ডার শুটিংয়ে ব্যস্ত কারিনা কাপুর খান। প্রমোশন শুরু করেছেন ‘আংরেজি মিডিয়ামের’ও। পাশাপাশি করণ জোহরের তখত-এর জন্যও প্রস্তুতি শুরু করে দিয়েছেন কারিনা।

১০ বছর আগে করোনার পূর্বাভাস দিয়েছিল যে চলচ্চিত্র

বিনোদন বাজার ॥ সারাবিশ্বে করোনাভাইরাস নিয়ে আতঙ্ক দেখা দিয়েছে। চীন থেকে ছড়িয়ে পড়া প্রাণঘাতী করোনাভাইরাসে বিশ্বজুড়ে প্রাণ হারিয়েছে ৪ হাজার ২৯৫ জন।

চীনের এই রহস্যময় ভাইরাসের গল্প নিয়ে ২০১১ সালে মুক্তি পাওয়া চলচ্চিত্রটি মোটামুটি সফলতা পেয়েছিল। আর ২০২০ সালে এসে সেটি ‘হিট’ হয়ে ওঠে। চলচ্চিত্রটির গল্প আর বাস্তবতার সঙ্গে অবিশ্বাস্য মিল দেখা গেছে।

২০১১ সালে মুক্তি পাওয়া চলচ্চিত্র কনটেজিয়নকে কোনোভাবেই ব্লকবাস্টার বা ব্যবসাসফল চলচ্চিত্র বলা যাবে না। যদিও বেশ কয়েকজন তারকাকে নিয়ে চলচ্চিত্রটি তৈরি হয়েছিল।

যাদের মধ্যে রয়েছেন- ম্যাট ডেমন, গিনেথ প্যালট্রো, জুডি ল, কেট উইনস্লেট এবং মাইকেল ডগলাস। তার পরও সেটি ওই বছরের ব্যবসায়ের দিক থেকে ৬১তম হয়েছিল।

৯ বছর পর সবাইকে অবাক করে দিয়ে ফিরে এসেছে ‘কনটেজিয়ন’। যুক্তরাষ্ট্রের অ্যাপল আইটিউন স্টোরে সবচেয়ে বেশি ডাউনলোড হওয়া ছবির তালিকায় জায়গা করে নিয়েছে চলচ্চিত্রটি। সেই সঙ্গে গুগল সার্চের তালিকায় শীর্ষে চলচ্চিত্রটির নাম খোঁজার প্রবণতাও বাড়ছে।

কনটেজিয়ন চলচ্চিত্র তৈরি করেছে ওয়ার্নার ব্রাদারস। তারা বলেছে, চীনে যখন প্রথম করোনাভাইরাসের প্রাদুর্ভাব দেখা দেয়, তখন বিশ্বের জনপ্রিয় চলচ্চিত্রের তালিকায় এটির অবস্থান ছিল ২৭০তম।

তিন মাস পর কনটেজিয়নের জায়গা হয়েছে নবম অবস্থানে। তার সামনে রয়েছে শুধু হ্যারি পটার সিরিজের আটটি চলচ্চিত্র। এর একমাত্র কারণ হলোÑ করোনাভাইরাস। প্রায় এক দশক আগে তৈরি চলচ্চিত্রটির কাহিনির সঙ্গে বর্তমান করোনাভাইরাসের প্রাদুর্ভাবের অনেক মিল রয়েছে।

চলচ্চিত্রটিতে একজন নারী ব্যবসায়ী (গিনেথ প্যালট্রো অভিনয় করেছেন) একটি রহস্যময় এবং মারাত্মক ভাইরাসে মারা যান। চীনে সফরের সময় তিনি ওই ভাইরাসে সংক্রমিত হয়েছিলেন। কিন্তু সেই সময় পর্যন্ত ওই ভাইরাসের ব্যাপারে কোনো সতর্কতা জারি করা হয়নি।

কনটেজিয়নের দর্শকরা বলছেন, বর্তমান বাস্তব জীবনের ভাইরাস সংক্রমণ যেমন চীন থেকে শুরু হয়েছিল, তেমনি চলচ্চিত্রটির এ রকম কাহিনির মিলের কারণেই সেটির জনপ্রিয়তা বেড়েছে।

সেই আগ্রহ আরও বেড়েছে গিনেথ প্যালট্রোর একটি ইনস্টাগ্রাম পোস্টের কারণে। গত ২৬ ফেব্রুয়ারি আটলান্টিক মহাসাগর পাড়ি দেয়ার সময় বিমানে বসে তিনি মুখে মাস্ক পরা একটি ছবি পোস্ট করেন।

সেখানে তিনি লিখেছেনÑ আমি এই চলচ্চিত্রটিতে আছি। নিরাপদ থাকবেন। করমর্দন করবেন না। নিয়মিত হাত ধোবেন।

কনটেজিয়ন চলচ্চিত্রের মতো চীনের স্বাস্থ্য কর্মকর্তাদের মতে, মানব শরীরে কোভিড-১৯ রোগের বিস্তার হয়েছে পশু থেকে।

স্বাস্থ্য বিশেষজ্ঞরা বলছেন, গত ডিসেম্বর মাস নাগাদ চীনের উহান শহরে পশু থেকে মানব শরীরে কোভিড-১৯ ভাইরাসটি ছড়াতে শুরু করে।

এটিও ধারণা করা হয় যে, করোনাভাইরাস বাদুড়ের মাধ্যমে বিস্তার ঘটেছে। যেমনটি ঘটেছিল সার্স মহামারীর ক্ষেত্রে ২০০২-০৩ সালে। যেভাবে কোভিড-১৯ ভাইরাসের সংক্রমণ ঘটে, চলচ্চিত্রের কল্পিত ভাইরাসটিও একে অপরকে স্পর্শের মাধ্যমে ছড়িয়ে পড়ে।

কল্পিত ভাইরাস ও বাস্তবের ভাইরাসের মধ্যে একটি মিল হলোÑ উভয়ের বিস্তারই বাদুড় থেকে ঘটেছে। কনটেজিয়ন চলচ্চিত্রে এমইভি-ওয়ানে আক্রান্ত হয়ে এক মাসের মধ্যেই বিশ্বে দুই কোটি ৬০ লাখ মানুষের মৃত্যু হয়। তবে চীনে তিন মাস আগে করোনাভাইরাসের বিস্তার ঘটার পর এখন পর্যন্ত মৃত্যুর সংখ্যা চার হাজার হয়নি।

কনটেজিয়নের এই ফিরে আসার ব্যাপারটি অবাক করেছে চিত্রনাট্যকার স্কট যি বার্নসকে।

তবে ফরচুন ম্যাগাজিনকে দেয়া এক সাক্ষাৎকারে তিনি বলেছেন, কনটেজিয়ন চলচ্চিত্রের মূল আইডিয়াটি ছিল এটিই তুলে ধরা যে, এ ধরনের প্রাদুর্ভাবের জন্য আধুনিক সমাজ কতটা অসহায় হয়ে পড়ে।

তথ্যসূত্র: বিবিসি বাংলা

অধরা ধরা দিতে প্রস্তুত

বিনোদন বাজার ॥ অভিনেত্রী অধরা খান অভিনীত প্রথম সিনেমা ‘পাগলের মতো ভালোবাসি’। সম্প্রতি মুক্তির জন্য সেন্সর বোর্ডের অনুমতি পেয়েছে সিনেমাটি। ত্রিভুজ প্রেমের গল্পে নির্মিত সিনেমাটিতে অধরার সঙ্গে জুটি বেঁধেছেন আসিফ নূর ও সুমিত সেনগুপ্ত। নিজের চিত্রনাট্য, সংলাপে সিনেমাটি পরিচালনা করেছেন শাহীন সুমন। সিনেমা প্রসঙ্গে নির্মাতা বলেন, ‘গত ৮ মার্চ ‘পাগলের মতো ভালোবাসি’ দেখার পর সেন্সর বোর্ড ছাড়পত্র প্রদানের অনুমতি দিয়েছে। ঈদের আগে মুক্তির কোনো তারিখ ফাঁকা নেই। তাই আমরা ঈদুল ফিতরের পরই সিনেমাটি মুক্তির সিদ্ধান্ত নিয়েছি।

এদিকে অধরা বলেন, ‘সিনেমাটির সেন্সর ছাড়পত্র পাওয়ার খবর পেয়ে ভালো লাগছে। পরিবার নিয়ে দেখার মতো সিনেমা এটি। আমরা প্রত্যেকেই চেষ্টা করেছি নিজের সর্বোচ্চটা দিতে। আশা করছি দর্শক সিনেমাটি পছন্দ করবেন। তবেই আমাদের কষ্ট সার্থক। সত্যি বলতে সিনেমাটি মুক্তির জন্য মুখিয়ে আছি।’