কুষ্টিয়া পৌরসভার আয়োজনে আন্তর্জাতিক নারী দিবস উপলক্ষে র‌্যালী

আন্তর্জাতিক নারী দিবস উপলক্ষে কুষ্টিয়া পৌরসভার আয়োজনে র‌্যালী অনুষ্ঠিত হয়েছে। প্রজন্ম হোক সমতার সকল নারীর অধিকার, এই স্লোগানকে সামনে রেখে গতকাল রবিবার সকালে কুষ্টিয়া পৌরসভার জননন্দিত মেয়র আনোয়ার আলী’র নির্দেশনায় র‌্যালিটি শহরের প্রধান প্রধান সড়ক প্রদক্ষিন করে কুষ্টিয়া পৌরসভার বিজয় উল্লাস চত্বরে এসে শেষ হয়। এসময় উপস্থিত ছিলেন কুষ্টিয়া পৌরসভার প্যানেল অব মেয়র -০১ মতিয়ার রহমান মজনু, প্যানেল অব মেয়র-৩ পারভীন হোসেন, কাউন্সিলর সাবা উদ্দিন সওদাগর, হেলাল উদ্দিন, শাহানাজ সুলতানা বনি। এছাড়াও উপস্থিত ছিলেন পৌরসভার সহকারী প্রকৌশলী পূর্ত ওয়াহেদুর রহমান, সহকারী প্রকৌশলী আবুল কাশেম, বস্তি উন্নয়ন কর্মকর্তা এ.কে.এম, মনজুরুল ইসলাম, কুষ্টিয়া পৌরসভা এমপ্লয়িজ ইউনিয়নের সভাপতি গোলাম সারওয়ার সহ পৌরসভা ও পৌরসভায় বিভিন্ন প্রকল্পের কর্মকর্তা-কর্মচারী ও গন্যমান্য ব্যক্তিবর্গ। উল্লেখ্য থাকে যে, ১৮৫৭ খ্রিষ্টাব্দে মজুরি বৈষম্য, কর্মঘন্টা নিদ্দিষ্ট করা, কাজের অমানবিক পরিবেশের বিরুদ্ধে প্রতিবাদ জানাতে মার্কিন যুক্তরাষ্ট্রের নিউইয়র্কের রাস্তায় নেমেছিল সুতা কারখানার নারী শ্রমিকেরা। ১৯০৯ সালের ২৮ ফেব্র“য়ারী নিউইয়র্কের স্যোশাল ডেমোক্রান্ট নারী সমাবেশে জার্মান সমাজতান্ত্রিক নেত্রী ক্লারা জেটকিনের নেতৃত্বে সর্বপ্রথম নারী সম্মেলন হয়। এই সম্মেলনে ক্লারা প্রতি বছর ৮ মার্চ নারী দিবস ঘোষনা করা হয় ও পরে জাতিসংঘ এই দিবসটি স্বীকৃতি দেয়। এরপর হতে বিশে^র সবদেশে নারী দিবস পালন করে আসছে। সংবাদ বিজ্ঞপ্তি

কর্ণফুলী টানেল নির্মাণ কাজ ৫১ শতাংশ সম্পন্ন হয়েছে – ওবায়দুল কাদের

ঢাকা অফিস ॥ আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক এবং সড়ক পরিবহণ ও সেতুমন্ত্রী ওবায়দুল কাদের বলেছেন, কর্ণফুলী নদীর তলদেশে টানেল নির্মাণের কাজ দীর্ঘায়িত হবেনা। ইতোমধ্যে টানেলের ৫১ শতাংশ কাজ সম্পন্ন হয়েছে। গতকাল রোববার চট্টগ্রামের পতেঙ্গায় কর্ণফুলী নদীর তলদেশে টানেল নির্মাণের কাজ পরিদর্শন শেষে সাংবাদিকদের তিনি এসব কথা বলেন। ওবায়দুল কাদের বলেন, দেশে প্রথম চট্টগ্রামের কর্ণফুলী নদীর তলদেশে টানেলের নির্মাণ প্রকল্পের কাজ দ্রুত গতিতে এগিয়ে চলছে। ১০ হাজার ৫’শ সেগমেন্টের মধ্যে প্রায় অর্ধেক সেগমেন্ট টানেলে স্থাপন করা হয়েছে। তিনি বলেন, ইতোমধ্যে নদীর দু’পাড়ে প্রকল্পের কাজ দৃশ্যমান হয়েছে। ১০ হাজার ৩’শ ৭৪ কোটি টাকা ব্যয়ে এ টানেল নির্মাণে বাংলাদেশ সরকার ৪ হাজার ৪’শ ৬১ কোটি টাকা যোগান দিচ্ছে। বাকী ৫ হাজার ৯’শ ১৩ কোটি টাকা চীন সরকার এ প্রকল্পে ব্যয় করছে। এসময় তথ্যমন্ত্রী ও আওয়ামী লীগের যুগ্ম সাধারণ সম্পাদক ড. হাছান মাহমুদ, আওয়ামী লীগের যুগ্ম সাধারণ সম্পাদক মাহবুব উল আলম হানিফ, দপ্তর সম্পাদক ও প্রধানমন্ত্রীর বিশেষ সহকারি ব্যারিস্টার বিপ¬ব বড়–য়া, উপ-প্রচার সম্পাদক আমিনুল ইসলাম আমিন, চট্টগ্রাম সিটি মেয়র আ জ ম নাছির উদ্দীন, সংসদ সদস্য মোসলেম উদ্দিন আহমেদ এমপি এবং জেলা পরিষদ চেয়ারম্যান এম এ সালাম উপস্থিত ছিলেন। সেতুমন্ত্রী বলেন, ২০১৯ সালের ১৯ ফেব্রুয়ারি প্রধানমন্ত্রী কর্ণফুলী টানেলের বোরিং কাজের শুভ উদ্বোধন করেন। ইতিমধ্যে ২ হাজার চার’শ মিটারের মধ্যে টানেল টিউব ১২’শ ২৮ মিটার বোরিংয়ের কাজ সম্পন্ন হয়েছে। এখন নদীর মাঝামাঝি অংশ পর্যন্ত চলে গেছে টানেল নির্মাণ কাজ। বর্তমানে ৫১ শতাংশ নির্মাণ কাজ শেষ হয়েছে। ওবায়দুল কাদের বলেন, আমরা আশা করছি ২০২২ সালের মধ্যে এই টানেল পুরোপুরি ভাবে আলোর মুখ দেখবে। শেখ হাসিনা সরকারের মেগা প্রজেক্টের মধ্যে অন্যতম বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমান কর্ণফুলী টানেলের নির্মাণ কাজ শেষ হবে এবং চট্টগ্রামের আর্থসামাজিক উন্নয়নে এই টানেল সুদূর প্রসারী প্রভাব ফেলবে। তিনি বলেন, করোনা ভাইরাসের কারণে কর্ণফুলী টানেলে কর্মরত চীনা নাগরিকরা এখনো কোন ক্ষয়ক্ষতি কিংবা সময় ক্ষেপণের কারণ সৃষ্টি করেনি। কাজ যথারীতি এগিয়ে চলছে। হয়তো করোনা ভাইরাসের ব্যাপারটি দীর্ঘায়িত হলে তখন ব্যাপারটা অন্যদিকে কিছুটা মোড় নিতে পারে। তবে যতটা পদ্মা সেতুতে হতে পারে কর্ণফুলী টানেলে ততটা নাও হতে পারে। কারণ এখানে কর্মরত চীনা নাগরিকদের সংখ্যা খুব বেশি নয়। ওবায়দুল কাদের বলেন, মোট ২৯৩ জন চীনা নাগরিক কর্ণফুলী টানেল প্রকল্পে কর্মরত আছে। এরমধ্যে ৭২ জন নববর্ষের ছুটিতে গিয়েছিল। তারমধ্যে ২৫ জন ফিরে এসেছে। ২৮ জন ১৪ দিনের ছুটি শেষ করে কাজে যোগদান করেছে। বাকি ১৭জন এখনো কোয়ারেন্টটাইনে রয়েছে। এরজন্য কাজের বিঘœ ঘটার কোন কারণ নেই। উপস্থিত তথ্যমন্ত্রী ড. হাছান মাহমুদকে ইঙ্গিত করে ওবায়দুল কাদের বলেন, আমি বারবার যত টানেলের কথাই বলিনা কেন চট্টগ্রামের সন্তান তথ্যমন্ত্রী হাছান মাহমুদ কানে কানে বলছেন শুধু মেট্রোরেলের কথা। এপ্রসঙ্গে ওবায়দুল কাদের বলেন, চট্টগ্রামে মেট্রোরেলের নির্মাণ কাজ শুরু হবে। মন্ত্রণালয় থেকে ফিজিবিলিটি স্টাডির জন্য কাজ চলছে। মেট্রোরেল প্রকল্পের কাজেরও অগ্রগতি আছে। মন্ত্রণালয় থেকে নির্দেশনা দেয়া হয়েছে। এখন ফিজিবিলিটি স্টাডির কাজ শুরু হচ্ছে। আগামী ২৯ মার্চ চট্টগ্রাম সিটি করপোরেশন নির্বাচনে আওয়ামী লীগের বিদ্রোহী কাউন্সিলর প্রার্থীদের নিয়ে দলীয় ভাবে কি ভাবছেন, সাংবাদিকদের এমন প্রশ্নের জবাবে আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক বলেন, ঢাকাতেও বিদ্রোহী প্রার্থী ছিল। প্রথমে যতটা ছিল শেষ পর্যন্ত ততটা বিদ্রোহী প্রার্থী ছিলনা। ১৭২ জনের মধ্যে কমতে কমতে মাত্র ১৫ জন ছিল, যারা জয় লাভ করেছে। চট্টগ্রামেও আমি উদ্বেগের কোন কারণ দেখিনা। যেটুকু সমস্যা আছে আশা করি সমস্যার সমাধান হয়ে যাবে। তিনি বলেন, আমরা কেন্দ্রীয়ভাবে ইঞ্জিনিয়ার মোশাররফ হোসেন সাহেবের নেতৃত্বে একটা নির্বাচন পরিচালনা কমিটি গঠন করে দিয়েছি। চট্টগ্রামের সমস্যা চট্টগ্রামেই যারা দায়িত্বরত আছেন তারাই সমাধান করবে। কেন্দ্র থেকে কোন পরামর্শ প্রয়োজন হলে দেব।

কুমারখালীতে আন্তর্জাতিক নারী দিবস উদযাপন উপলক্ষে আলোচনা সভা

কুমারখালী প্রতিনিধি ॥ আন্তর্জাতিক নারী দিবস উদযাপন উপলক্ষে কুমারখালীতে আলোচনা সভা অনুষ্ঠিত হয়েছে। গতকাল রবিবার  বেলা ১১টায় উপজেলা পরিষদ সভাকক্ষে ‘প্রজন্ম হোক সমতার, সকল নারীর অধিকার ও শেখ হাসিনার বারতা, নারী পুরুষ সমতা’ প্রতিপাদ্যের আলোকে আলোচনা সভা অনুষ্ঠিত হয়। উপজেলা প্রশাসন ও উপজেলা মহিলা বিষয়ক কর্মকর্তা কার্যালয় আয়োজিত আলোচনা সভায় সভাপতিত্ব করেন সহকারি কমিশনার (ভূমি) এম, এ মুহাইমিন আল জিহান। প্রধান অতিথি হিসাবে বক্তব্য রাখেন, কুষ্টিয়া-৪ আসনের সংসদ সদস্য সেলিম আলতাফ জর্জ। বিশেষ অতিথি হিসাবে বক্তব্য রাখেন, উপজেলা স্বাস্থ্য ও পরিবার পরিকল্পনা কর্মকর্তা ডা. আকুল উদ্দিন, উপজেলা প্রকৌশলী মো. মাহবুব আলম, মহিলা পরিষদের সভাপতি মমতাজ বেগম। এ অনুষ্ঠানে স্বাগত বক্তব্য রাখেন, উপজেলা মহিলা বিষয়ক কর্মকর্তা   ফেরদৌস নাজনীন। এ ছাড়াও বক্তব্য রাখেন মহিলা পরিষদের সাধারন সম্পাদক রওশন আরা নীলা, মহিলা পরিষদের কেন্দ্রীয় কমিটির সদস্য হোসনে আরা রুবী, নিজেরা করির আঞ্চলিক সমন্বয়কারী কামাল হোসেন প্রমুখ। আলোচনা অনুষ্ঠানে নারী সংগঠনের নেত্রীবৃন্দসহ শিক্ষা প্রতিষ্ঠানের শিক্ষার্থীরা উপস্থিত ছিলেন। এর আগে ৭ মার্চ দিবসটি উদযাপনে উপজেলা প্রশাসন ও মহিলা বিষয়ক কর্মকর্তার কার্যালয়ের যৌথ উদ্যোগে মানববন্ধন কর্মসূচী পালিত হয়।

 

করোনা ভাইরাস থেকে রক্ষা পাবেন যেভাবে

ঢাকা অফিস ॥ চীনের হুবেই প্রদেশ থেকে ছড়িয়ে পড়া প্রাণঘাতী করোনা ভাইরাসে ইতিমধ্যে বিশ্বের ৬৬ দেশ আক্রান্ত হয়েছে। দেশগুলোকে বারবার সতর্ক করছে বিশ্ব স্বাস্থ্য সংস্থা (ডব্লিউএইচও)। করোনা ভাইরাসে বিশ্ব জুড়ে জরুরী অবস্থা বিরাজমান। তবে এ রোগ থেকে মুক্তির জন্য নির্দিষ্ট কোনো প্রতিষেধক আবিষ্কার না হলেও সতর্ক থেকে রক্ষা পাওয়া যায় করোনা ভাইরাস থেকে। বিসিসি খবরে বলা হয়, করোনা ভাইরাস মানুষ থেকে মানুষে ঠিক কীভাবে ছড়ায় সেটি এখনও নিশ্চিত করে জানা যায়নি। তবে এই রকমের ভাইরাস থেকে রক্ষার জন্য বেশ কিছু পদ্ধতি বেশ কার্যকর। সাধারণত আক্রান্ত ব্যক্তির হাঁচি ও কাশির সময় তার নাক ও মুখ দিয়ে যা নির্গত হয় (জলীয় পদার্থের কণা বা ড্রপলেট) তার মাধ্যমে ছড়িয়ে থাকে এই ভাইরাসগুলো। তাই হাঁচি ও কাশির সময় আপনার সতর্কতা ভাইরাসে আক্রান্ত হওয়ার ঝুঁকি কমিয়ে দেবে। এ বিষয়ে এনএইচএসের পরামর্শ, নিয়মিত বারবার হাত ধুতে হবে ও পরিষ্কার থাকতে হবে। হাঁচি ও কাশি দেওয়ার সময় টিস্যু দিয়ে মুখ ঢেকে রাখতে হবে। একই সঙ্গে হাত পরিষ্কার না হলে চোখ, নাক ও মুখ স্পর্শ করা যাবে না। তবে পার্সেল, প্যাকেট, চিঠি অথবা খাদ্যের মাধ্যমে করোনা ভাইরাসে আক্রান্ত হওয়ার বিষয়ে এখনও কোন প্রমাণ পাওয়া যায় নি। চিকিৎসকের পরামর্শ মেনে চলতে হবে এবং প্রয়োজনে লোক সমাগম এড়িয়ে চলতে হবে। তবে এসব ভাইরাস মানব শরীরের বাইরে বেশি সময় টিকে থাকতে পারে না। গত বছরের ডিসেম্বরে চীনের হুবেই প্রদেশের উহানে প্রথম করোনা ভাইরাসের আবির্ভাব ঘটে। এরপরই বিশ্বব্যাপী ছড়িয়ে পড়ে। করোনা ভাইরাসে আক্রান্ত রোগীদের শরীরে প্রাথমিক লক্ষণ হিসেবে শ্বাসকষ্ট, জ্বর, সর্দি, কাশির মত সমস্যা দেখা দেয়। গোটা বিশ্বের ৬৬টি দেশে ৯০ হাজারের বেশি মানুষ করোনা ভাইরাসে আক্রান্ত হয়েছে। আর করোনা ভাইরাসে আক্রান্ত হয়ে মারা গেছেন অন্তত ৩ হাজারেরও বেশি লোক।

নারী দিবসের অনুষ্ঠানে প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা

নারীরা সকল ক্ষেত্রে দক্ষতার স্বাক্ষর রাখছেন

ঢাকা অফিস ॥ প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা বলেছেন, তাঁর সরকার প্রদত্ত সুযোগ-সুবিধা কাজে লাগিয়ে প্রতিটি ক্ষেত্রেই দেশের নারী সমাজ তাদের দক্ষতার প্রমাণ রাখতে সক্ষম হচ্ছেন। প্রধানমন্ত্রী বলেন,‘আমরা প্রতিটি ক্ষেত্রে নারীদের জন্য সুযোগ সৃষ্টি করে দিচ্ছি, যাতে তারা এগিয়ে যেতে পারে। কাজেই তারা যেখানেই যাচ্ছে তাদের দক্ষতার দেখাচ্ছেন।’ প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা গতকাল রোববার সকালে রাজধানীর ওসমানী স্মৃতি মিলনায়তনে আন্তর্জাতিক নারী দিবস উপলক্ষে আয়োজিত অনুষ্ঠানমালার উদ্বোধনী পর্বে প্রধান অতিথির ভাষণে একথা বলেন। ‘প্রজন্ম হোক সমতার,সকল নারীর অধিকার’ শীর্ষক এবারের নারী দিবসের প্রতিপাদ্য নিয়ে সরকারের মহিলা ও শিশু বিষয়ক মন্ত্রণালয় এই অনুষ্ঠানের আয়োজন করে। শেখ হাসিনা বলেন, ‘আমাদের মেয়েরা ভারত্তোলন থেকে শুরু করে এভারেষ্ট পর্যন্ত বিজয় করে ফেলেছে।’ তিনি বলেন, ‘খেলাধূলায় আমাদের যেসব মেয়েরা ভাল করছে তাদেরকে আমরা উৎসাহ দিচ্ছি এবং সকল ধরনের সুযোগ-সুবিধা প্রদান করে যাচ্ছি।’ তিনি বলেন, ‘মেয়েরা যে পারে সেটা আজ প্রমাণিত।’ শেখ হাসিনা বলেন, আমাদের হাইকোর্ট এবং সুপ্রীম কোর্টে বিচারপতি পদে কখনও কোন মেয়েরা পদোন্নতি পায়নি। তবে, প্রথমবার ক্ষমতায় আসার পরই সে সময়কার রাষ্ট্রপতিকে বলেছিলাম, এখানে মহিলা বিচারপতি নিয়োগ দিতে হবে এবং সেই থেকেই শুরু আর এখন অনেক মহিলা বিচারপতি আছেন। সরকার প্রধান বলেন, ‘শান্তিরক্ষা মিশনে আমাদের পুলিশ বাহিনীর যে কন্টিনজেন্ট কঙ্গোতে আছে, সেখানে তারা খুব ভালো করছে এবং শান্তিরক্ষা মিশনে মেয়েদের গুরুত্ব অনেক বেড়ে গেছে। সশস্ত্র বাহিনী এবং পুলিশ বাহিনীর নারী অফিসারদেরকেই তারা চাচ্ছে। কারণ মেয়েরা সেখানে অত্যন্ত দক্ষতার পরিচয় দিতে সক্ষম হয়েছে।’ প্রধানমন্ত্রী বলেন,‘এজন্য আমি সত্যিকারেই গর্বিত।’ মহিলা ও শিশু বিষয়ক প্রতিমন্ত্রী ফজিলাতুন নেসা ইন্দিরা অনুষ্ঠানে সভাপতিত্ব করেন। ইউএন উইমেনের এদেশীয় প্রতিনিধি এবং ভারপ্রাপ্ত আবাসিক সমন্বয়ক শোকো ইশিকাওয়া অনুষ্ঠানে বিশেষ অতিথির বক্তৃতা করেন। মহিলা ও শিশু মন্ত্রণালয়ের সচিব কাজী রওশন আক্তার স্বাগত বক্তৃতা করেন। অনুষ্ঠানে প্রধানমন্ত্রী ‘জয়িতা পদকে’ ভূষিত সফল পাঁচজন নারীর হাতে সম্মাননা তুলে দেন। পদক প্রাপ্তরা হলেন- আনোয়ারা বেগম, ডা. সুপর্ণা দে সিম্পু, মরহুম মমতাজ বেগম, অরনিকা মেহেরিন ঋতু এবং সিআরপির প্রতিষ্ঠাতা ভ্যালেরি অ্যান টেইলর। অনুষ্ঠানে ‘বঙ্গবন্ধু ও নারী উন্নয়ন’ শীর্ষক প্রামাণ্য চিত্র পরিবেশিত হয়। পরে অনুষ্ঠিত মনোজ্ঞ সাংস্কৃতিক অনুষ্ঠানও উপভোগ করেন প্রধানমন্ত্রী। মন্ত্রি পরিষদ সদস্যবৃন্দ, প্রধানমন্ত্রীর উপদেষ্টাগণ, সংসদ সদস্যবৃন্দ, সরকারের পদস্থ সামরিক ও বেসামরিক কর্মকর্তাবৃন্দ, বিদেশি কূটনীতিক, উন্নয়ন সহযোগী সংস্থার প্রতিনিধি, বিভিন্ন বেসরকারী সংস্থার প্রধান সহ বিভিন্ন নারী নেতৃবৃন্দ এবং আমন্ত্রিত অতিথিবৃন্দ অনুষ্ঠানে উপস্থিত ছিলেন।

১৮৫৭ সালের ৮ মার্চ মজুরি-বৈষম্য, কর্মঘণ্টা নির্ধারণ এবং কর্মক্ষেত্রে বৈরী পরিবেশের প্রতিবাদকালে যুক্তরাষ্ট্রের নিউইয়র্কের সুতা কারখানার একদল শ্রমজীবী নারী মালিকপক্ষের দমন-পীড়নের শিকার হন। সেইদিনের নারী আন্দোলনের স্মরণে জার্মান সমাজতান্ত্রিক নেত্রী ও রাজনীতিবিদ ক্লারা জেটকিনের আহ্বানের মধ্যদিয়ে বিশ্বব্যাপী ৮ মার্চ আন্তর্জাতিক নারী দিবস হিসেবে পালিত হয়ে আসছে। গৌরবোজ্জ্বল মুক্তিযুদ্ধের মাধ্যমে স্বাধীনতা অর্জনের পর জাতির পিতার নির্দেশে ১৯৭৩ সাল থেকে বাংলাদেশে দিবসটি পালন করা হচ্ছে। প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা বলেন, ‘নারীরা যত শিক্ষিত হবে, নারীরা যত স্বাবলম্বী হবে সমাজ তত দ্রুত এগিয়ে যেতে পারবে। কারণ সমাজের অর্ধেক অংশকে অকেজো রেখে দিয়ে একটি সমাজ সঠিকভাবে চলতে পারে না। সে সমাজ খুঁড়িয়ে খুঁড়িয়ে চলবে।’ প্রধানমন্ত্রী, স্পিকার, সংসদ উপনেতা, জাতীয় সংসদে বিরোধী দলীয় নেতা সহ বিভিন্ন সেক্টরে বাংলাদেশে নারীর ক্ষমতায়নে তাঁর সরকারের সাফল্য তুলে ধরেন তিনি। নারীদের নিজেদের যোগ্য করে গড়ে তোলার আহ্বান জানিয়ে প্রধানমন্ত্রী বলেন, ‘ক্ষমতা জোর করে হয় না। ক্ষমতা নিজের যোগ্যতায় অর্জন করে নিতে হয়। ক্ষমতা কেউ হাতে তুলে দেয় না। সেভাবেই আমাদের বোনদের নিজেদের তৈরি করতে হবে।’ প্রধানমন্ত্রী তাঁর ভাষণে ধর্ষণের মত সামাজিক ব্যাধি থেকে সমাজকে রক্ষায় পুরুষদের সোচ্চার হওয়ার আহবান জানান। অন্যদিকে বাংলাদেশে নারীদের চেয়ে ছেলেরা পিছিয়ে রয়েছে উল্লেখ করে জেন্ডার গ্যাপ সমস্যার সমাধানে এর কারণ খুঁজে বের করে ব্যবস্থা গ্রহণেও সংশ্লিষ্ট মহলকে পরামর্শ দেন। বিশ্বব্যাপী আতংক সৃষ্টিকারী করোনা ভাইরাস নিয়ে আতংকিত না হয়ে বাংলাদেশের এই সমস্যা মোকাবেলার সামর্থ রয়েছে উল্লেখ করে সকলকে স্বাস্থ্যবিধি মেনে চলার জন্যও পরামর্শ দেন প্রধানমন্ত্রী। সরকার প্রধান বলেন, ইদানিং নারী ধর্ষণের বিষয়টি কেবল বাংলাদেশে নয়, সমগ্র বিশ্বজুড়েই একটি সমস্যা হিসেবে দেখা দিয়েছে। তিনি বলেন,‘আমি মনে করি এখানেও আমাদের একদিকে যেমন সচেতনতা দরকার তেমনি পুরুষ শ্রেণী যারা, তাদেরকেও এগিয়ে আসতে হবে।’ প্রধানমন্ত্রী বলেন,‘পুরুষ সমাজের পক্ষ থেকেও আমরা চাই ধর্ষণের বিরুদ্ধে সোচ্চার হতে হবে । ’ নারীদের পাশবিক নির্যাতনকারীরা সমাজে সবচেয়ে ঘৃণিত এবং পশুর চেয়ে ও অধম উল্লেখ করে তিনি বলেন, ‘এদের বিরুদ্ধে আমাদের পুরুষ সমাজকেও ব্যবস্থা নিতে হবে।’ প্রধানমন্ত্রী বলেন, ‘আমরা দেখেছি এই বাংলাদেশে ১৯৭১ সালে পাকিস্তান সেনাবাহিনী যখন গণহত্যা চালিয়েছে সেই সময় মেয়েদের ওপর কী রকম পাশবিক অত্যাচার করেছিল। ক্যাম্পে আটকে রেখে নির্যাতন চালাতো আর বলতো সাচ্চা পাকিস্তানী তৈরী করছে।’ জাতির পিতা এই নারীদের ‘বীরাঙ্গনা’ উপাধিতে ভূষিত করে তাঁদের সমাজে পুণর্বাসনের উদ্যোগ নেন। নারী পূণর্বাসন বোর্ড গঠন করেন। বিদেশ থেকে চিকিৎসক এনে চিকিৎসা করান। যে সব মেয়েদের বিয়ে হচ্ছিল না, তাঁদের নিজের পরিচয়ে বিয়ের উদ্যোগ নেন। বঙ্গবন্ধু কন্যা বলেন,জাতির পিতা বলেছিলেন-‘লিখে দাও বাবার নাম শেখ মুজিবুর রহমান,ঠিকানা ধানমন্ডী-৩২ নম্বর।’ প্রধানমন্ত্রী আরো বলেন, ‘জাতির পিতা বলতেন- শুধু মেয়েদের অধিকারের কথা বললে হবে না, তাদের অর্থনৈতিক অধিকার নিশ্চিত করতে হবে। বঙ্গবন্ধু সেটাই করেছিলেন।’ তাঁর মা’ ‘বঙ্গমাতা’ (শেখ ফজিলাতুন নেছা) অনেককে নিজের গহনা পর্যন্ত দিয়ে বিয়ের উদ্যোগ নিয়েছিলেন বলেও যুদ্ধবিধ্বস্থ দেশ পুণর্গঠনকালে বঙ্গমাতার অবদানকে স্মরণ করেন বঙ্গবন্ধু কন্যা। আওয়ামী লীগের গঠনতন্ত্রে নারীর অধিকারের কথা রয়েছে জানিয়ে দলটির সভাপতি বলেন, ‘আমাদের দেশে একমাত্র সংগঠন আমাদের আওয়ামী লীগের গঠনতন্ত্রে নারীদের অধিকারের কথা রয়েছে। আমাদের ঘোষণাপত্রেও সমান অধিকারের কথা বলা আছে।’ প্রধানমন্ত্রী বলেন, বর্তমান সরকারের বিগত ১১ বছরে নারীর ক্ষমতায়ন ও নারী উন্নয়নকে অগ্রাধিকার দিয়ে জাতীয় উন্নয়নের প্রতিটি ক্ষেত্রে পুরুষের পাশাপাশি নারীকে সহযাত্রী করা হয়েছে। ‘জাতীয় নারী উন্নয়ন নীতি-২০১১ প্রণয়ন, ‘নারী উন্নয়নে জাতীয় কর্মপরিকল্পনা ২০১৩-২৫’, ‘পারিবারিক সহিংসতা (প্রতিরোধ ও সুরক্ষা) বিধিমালা ২০১৩’, ‘ডিএনএ আইন’, ‘যৌতুক নিরোধ আইন’, ‘বাল্যবিবাহ নিরোধ আইন’ ও ‘বাল্যবিবাহ নিরোধ বিধিমালা’ প্রণয়ন ছাড়াও তথ্য প্রযুক্তি ব্যবহারে নারীর অংশগ্রহণ নিশ্চিত করতে তাঁর সরকারের বিভিন্ন কার্যক্রম রয়েছে বলেও উল্লেখ করেন তিনি। তাঁর সরকার খেলাধূলা সহ সর্বক্ষেত্রে মেয়েদের অংশ গ্রহণের সুযোগ সৃষ্টি করেছে উল্লেখ করে শেখ হাসিনা, ’৯৬ পরবর্তীকালে ক্ষমতায় থাকাকালীন তাঁর সরকার প্রমিলা ফুটবল আয়োজনে দেশের বিভিন্ন জেলায় যে বাধার সম্মুখীন হয়েছিলেন, তা স্মরণ করিয়ে দেন। প্রধানমন্ত্রী বলেন, ‘অনেক জেলাতে এই খেলাই অনুষ্ঠিত হতে পারেনি। কিন্তু দ্বিতীয় বার সরকারে এসে প্রাথমিক পর্যায় থেকে এই খেলা অনুষ্ঠানের উদ্যোগ নেওয়ায় আজকে আঞ্চলিক এবং আন্তর্জাতিক পর্যায়ে মেয়েরা খেলাধূলায় তাঁদের পারদর্শিতা প্রমাণ করেছে।’ প্রধানমন্ত্রী বলেন, সারাবিশ্বে জেন্ডার গ্যাপ নিয়ে একটি প্রশ্ন থাকলেও বাংলাদেশে বিষয়টির উল্টো ঘটছে। তিনি বলেন,‘আমাদের ক্ষেত্রে সমস্যাটা উল্টে গেছে। কারণ আমাদের এখন মেয়ে শিক্ষার্থীর সংখ্যা বেশি হয়ে গেছে, ছাত্রের সংখ্যা কমেছে। পাশও ছাত্রীরাই বেশি করছে এবং ফলাফলও তাঁরা ভাল করছে।’ ছেলেরা কেন পিছিয়ে আছে সেজন্য জেন্ডার গ্যাপ পূরণে তাঁকে এখন নজর দিতে হবে এবং এজন্য অনুষ্ঠানে উপস্থিত শিক্ষামন্ত্রীকে এ বিষয়টিতে নজর দেয়ার আহবান জানান প্রধানমন্ত্রী। তাঁর সরকার মাতৃত্বকালিন ছুটি ছয় মাসে উন্নীত করেছে এবং মাতৃত্বকালীন ভাতা, ল্যাকটেটিং মাদার ভাতা, বয়স্ক ভাতা, বিধবা ভাতা এবং স্বামী পরিত্যক্তা ভাতা দিয়ে যাচ্ছে বলেও উল্লেখ করেন। এসিড সন্ত্রাসের বিরুদ্ধে তাঁর সরকারের কঠোর আইন প্রণয়ন এবং মোবাইল কোর্টের মাধ্যমে সাজা প্রদানের উদ্যোগ তুলে ধরে এসিড সন্ত্রাস নিয়ন্ত্রণে তাঁর সরকারের সাফল্যেরও উল্লেখ করেন সরকার প্রধান । ‘আরেকটি সমস্যা সারা বিশ্বব্যাপী এখন চলছে- করোনাভাইরাস,’ উল্লেখ করে প্রধানমন্ত্রী বলেন, ‘এই করোনা ভাইরাসের কারণে অনেক দেশ এখন অর্থনৈতিক ভাবেও সমস্যার সম্মুখীন হচ্ছে।’ তিনি বলেন, ‘আমরা কিন্তু সারাক্ষণ মনিটর করছি। কোথাও যদি কোন সমস্যা দেখা দেয়, যথাযথ ব্যবস্থা নিচ্ছি। ইনশাল্লাহ এই ধরনের সমস্যা মোকাবেলার যথেষ্ট সক্ষমতা আমাদের রয়েছে।’ করোনাভাইরাস থেকে বাঁচতে সবাইকে স্বাস্থ্য মন্ত্রণালয়ের দেয়া নির্দেশনাগুলো মেনে চলার আহ্বান জানান প্রধানমন্ত্রী। তিনি বলেন,‘স্বাস্থ্য সুরক্ষার নির্দেশনাগুলো সকলকে মেনে চলার অনুরোধ জানাচ্ছি।’ শেখ হাসিনা বলেন, ‘এই ক্ষেত্রে আমি বলবো সবাইকে পরিস্কার পরিচ্ছন্ন থাকতে। এছাড়া,কিভাবে চলতে হবে, কিভাবে কাজ করতে হবে সেজন্য প্রতিদিনই আমাদের স্বাস্থ্য মন্ত্রণালয় থেকে নির্দেশনা দেওয়া হচ্ছে।’

ভাষা সৈনিকদের তালিকা করতে নির্দেশ হাইকোর্টের

ঢাকা অফিস ॥ ভাষা শহীদ ও ভাষা সৈনিকদের পূর্ণাঙ্গ তালিকা করতে নির্দেশ দিয়েছে হাইকোর্ট। বিচারপতি এফআরএম নাজমুল আহাসান ও বিচারপতি কে এম কামরুল কাদের সমন্বয়ে গঠিত একটি হাইকোর্ট ডিভিশন বেঞ্চ আজ রবিবার এ আদেশ দেয়। আদালতে এ সংক্রান্ত রিটের পক্ষে শুনানি করেন আইনজীবী সুবীর নন্দী দাস ও ইশরাত হাসান। রাষ্ট্রপক্ষে ছিলেন ব্যারিস্টার আবদুল্লাহ আল মাহমুদ বাশার। আইনজীবী ইশরাত হাসান বলেন, আদালত ৬ মাসের মধ্যে ভাষা শহীদ ও ভাষা সৈনিকদের পূর্ণাঙ্গ তালিকা করতে নির্দেশ দিয়েছে। সংস্কৃতি সচিবের নেতৃত্বে সমাজের গুরুত্বপূর্ণ ব্যক্তিদের নিয়ে কমিটি করে এই তালিকা করতে হবে। দুই মাস পর কমিটি গঠনের রূপরেখা ও তালিকার অগ্রগতি নিয়ে সংস্কৃতি সচিবকে একটি প্রতিবেদন দিতে বলেছে আদালত। ৬ মাসের মধ্যে ভাষা সৈনিক ও ভাষা শহীদের পূর্ণাঙ্গ তালিকা আদালতে দাখিল করতে হবে। ভাষা শহীদ ও ভাষা সৈনিকদের রাষ্ট্রীয় সন্মান-সম্মানী ভাতা ও ভাষা আন্দোলনের স্মৃতি সংরক্ষণের নির্দেশনা চেয়ে গত ২৭ ফেব্রুয়ারি হাইকোর্টে রিটটি করা হয়। রিটে ভাষা সৈনিক ও ভাষা শহীদদের পূর্ণাঙ্গ তালিকা গঠনের নির্দেশনা চাওয়া হয়। মন্ত্রী পরিষদ সচিব, সংস্কৃতি সচিব ও অর্থ সচিবকে রিটে বিবাদী (রেসপনডেন্ট) করা হয়েছে। রিটকারী আইনজীবী ইশরাত হাসান বলেন, রিট আবেদনে বলা হয়েছে, বাংলা ভাষার মাধ্যমেই আমরা ভাব ও বাক প্রকাশ করে থাকি। আমাদের চিন্তা, বিবেক ও ভাব প্রকাশের স্বাধীনতা সংবিধানের ৩৯ অনুচ্ছেদে মৌলিক অধিকার হিসেবে স্বীকৃতি দেওয়া হয়েছে। আমাদের এই মৌলিক অধিকার যে বীর সন্তানদের দ্বারা প্রতিষ্ঠিত হয়েছে তাদের রাষ্ট্রীয় সম্মান, সম্মানী ও সম্মাননা দেওয়া আমাদের পরম দায়িত্ব ও কর্তব্য। রিট আবেদনে ভাষা সৈনিকদের অনাদরে-অবহেলায় থাকা সংক্রান্ত বিভিন্ন পত্রিকায় প্রকাশিত প্রতিবেদন সংযুক্ত করা হয়েছে।

গোস্বামী দূর্গাপুরে এক কেজি গাজা সহ আটক-২

নিজ সংবাদ ॥ কুষ্টিয়া সদর উপজেলার গোস্বামী দূর্গাপুর বটতলা থেকে গতকাল রবিবার সকাল সাড়ে সাতটার সময় ইবি থানার পুলিশ অভিযান চালিয়ে এক কেজি গাজা সহ জাকির হোসেন (২৭) ও বাবু (৪৭) নামে দুইজন কে আটক করে। গোপন সংবাদের ভিত্তিতে ইবি থানার অফিসার ইনচার্জ জাহাঙ্গীর আরিফ সঙ্গীয় ফোর্সসহ সকাল সাড়ে ৭টা গোস্বামী দূর্গাপুর বাজারের পাশে  বটতলা অভিযান চালিয়ে মিরপুর উপজেলার মহম্মপুর গ্রামের হেলালের ছেলে জাকির হোসেন ও একই এলাকার মকছেদ মন্ডলের ছেলে বাবুর দেহ তল্লাশী করে এক কেজি গাজা সহ তাদের আটক করেন। এই ব্যাপারে ইবি থানায় একটি মাদকদ্রব্য নিয়ন্ত্রন আইনে মামলা হয়েছে।

বাংলাদেশে তিনজন করোনাভাইরাসে আক্রান্ত

ঢাকা অফিস ॥ বাংলাদেশে প্রথমবারের মত তিনজনের মধ্যে নভেল করোনাভাইরাসের সংক্রমণ ধরা পড়েছে বলে জানিয়েছে সরকারের রোগতত্ত্ব, রোগ নিয়ন্ত্রণ ও গবেষণা প্রতিষ্ঠান-আইইডিসিআর। আক্রান্তদের মধ্যে দুজন পুরুষ, একজন নারী; তিনজনই বাংলাদেশি। তাদের মধ্যে দুজন ইতালির দুটি শহর থেকে সম্প্রতি দেশে ফিরেছেন। এদের মধ্যে একজনের সংস্পর্শে আসায় পরিবারের আরেক সদস্য আক্রান্ত হয়েছেন। ইনস্টিটিউটের পরিচালক মীরজাদী সেব্রিনা ফ্লোরা গতকাল রোববার আইইডিসিআরের নিয়মিত ব্রিফিংয়ে বলেন, “তাদের সবার অবস্থাই স্থিতিশীল। তিনজনকেই হাসপাতালে চিকিৎসা দেওয়া হচ্ছে।” ওই তিনজনের সংক্রমণের বিষয়ে শনিবার নিশ্চিত হওয়ার কথা জানিয়ে অধ্যাপক ফ্লোরা বলেন, “দুজন দেশে আসার পর তাদের উপসর্গ দেখা দেয়। আমাদের হটলাইনে ফোন দিলে আমরা তাদের নমুনা সংগ্রহ করে পরীক্ষাগারে পাঠাই। সেখানে দুজনের পজেটিভ আসে। “তাদের কন্টাক্টে থাকা চারজনকে পরীক্ষা করেছি। একজন পজেটিভ। বাকিরা নেগেটিভ এসেছে।” নভেল করোনাভাইরাস মূলত শ্বাসতন্ত্রে সংক্রমণ ঘটায়। এর লক্ষণ শুরু হয় জ্বর দিয়ে, সঙ্গে থাকতে পারে সর্দি, শুকনো কাশি, মাথাব্যথা, গলাব্যথা ও শরীর ব্যথা। সপ্তাহখানেকের মধ্যে দেখা দিতে পারে শ্বাসকষ্ট। উপসর্গগুলো হয় অনেকটা নিউমোনিয়ার মত। রোগ প্রতিরোধ ক্ষমতা ভালো হলে এ রোগ কিছুদিন পর এমনিতেই সেরে যেতে পারে। তবে ডায়াবেটিস, কিডনি, হৃদযন্ত্র বা ফুসফুসের পুরোনো রোগীদের ক্ষেত্রে ডেকে আনতে পারে মৃত্যু। নভেল করোনাভাইরাস এর কোনো টিকা বা ভ্যাকসিন এখনো তৈরি হয়নি। ফলে এমন কোনো চিকিৎসা এখনও মানুষের জানা নেই, যা এ রোগ ঠেকাতে পারে। আপাতত একমাত্র উপায় হল, যারা ইতোমধ্যেই আক্রান্ত হয়েছেন বা এ ভাইরাস বহন করছেন- তাদের সংস্পর্শ এড়িয়ে চলা। চিকিৎসকরা বলছেন, সংক্রমণ এড়াতে চাইলে ঘন ঘন হাত ধোয়া ভালো। সেই সঙ্গে নিত্য ব্যবহার্য সামগ্রীও নিরাপদ রাখতে হবে। গত ডিসেম্বরের শেষদিকে চীনের হুবেই প্রদেশের উহান শহর থেকে নভেল করোনাভাইরাসের প্রাদুর্ভাব শুরু হয়, যা ইতোমধ্যে ছড়িয়ে পড়েছে প্রায় ১০০ দেশ ও অঞ্চলে। বিশ্বজুড়ে ১ লাখ ৫ হাজারের বেশি মানুষ এ করোনাভাইরাসে আক্রান্ত হয়েছে; মৃত্যু হয়েছে ৩ হাজার ৫৯৫ জনের। এর আগে সিঙ্গাপুর, সংযুক্ত আরব আমিরাত ও ইতালিতে সাতজন বাংলাদেশি নভেল করোনাভাইরাসে আক্রান্ত হলেও বাংলাদেশে এই প্রথম কারও মধ্যে এ ভাইরাসের সংক্রমণ ধরা পড়লো। কভিড-১৯ নাম পাওয়া এ রোগ নিয়ে ‘ঘাবড়ানোর কিছু নেই’ মন্তব্য করে প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা রোববার ওসমানী মিলনায়তনে এক অনুষ্ঠানে বলেন, “স্বাস্থ্য সুরক্ষার নির্দেশনাগুলো মেনে চলতে সকলকে আমি অনুরোধ জানাচ্ছি।”

কুষ্টিয়া জেলা আইন শৃংখলা কমিটির সভায় সচিব শহিদুজ্জামান

আগামীর নেতৃত্বদানকারী আজকের প্রজন্মকে যে কোন মূল্যে মাদকমুক্ত রাখতে হবে

আরিফ মেহমুদ ॥ গণপ্রজাতন্ত্রী বাংলাদেশ সরকারের স্বরাষ্ট্র মন্ত্রণালয়ের সুরক্ষা সেবা বিভাগের সচিব কুষ্টিয়ার কৃতিসন্তান মোঃ শহিদুজ্জামান বলেছেন- আজকের বিশ^ায়নের যুগে আপনার আমার সন্তানের মধ্যে যে অপার সম্ভাবনা লুকিয়ে আছে তা মাদকমুক্ত রেখে ভাল কাজে লাগাতে হবে। তাদের এই মেধা ও প্রতিভা  কোনভাবেই মাদকাসক্ত হয়ে নষ্ট হতে দেয়া যাবেনা। আপনার সন্তানের প্রতি খেয়াল রাখুন তাদের মরণ নেশ মাদক ও বিপদগামীতার হাত থেকে রক্ষা করুন। আর এক্ষেত্রে নিজেদের বেশি বেশি করে সচেতন হতে হবে। মাদকদ্রব্য এমন একটি নেশা যা পরিবার, দেশ তথা রাষ্ট্রে অস্থিতিশীল পরিবেশ তৈরী করছে। মাদক আস্তে আস্তে আমাদের প্রজন্মের মেধা ও জীবনী শক্তি কেড়ে নিচ্ছে। আগামীর নেতৃত্বদানকারী আজকের প্রজন্মকে মাদকের ছোয়া থেকে যে কোন মুল্যে বাইরে রাখতেই হবে। গতকাল রবিবার সকালে জেলা প্রশাসকের সম্মেলন কক্ষে জেলা আইন-শৃংখলা কমিটির মাসিক সভায় প্রধান অতিথির বক্তব্যে তিনি এসব কথা বলেন।

সচিব মোঃ শহিদুজ্জামান আরো বলেন- আগামী দিনের ভবিষ্যৎ আমাদের যুব সমাজকে সুরক্ষায় প্রয়োজনীয় ব্যবস্থা নিতে হবে। সমাজের নানান অসঙ্গীর কারনে মাদকাসক্ত হয়ে উঠছে যুব সমাজ। এদের মাদকাসক্ত থেকেই স্বাভাবিক জীবনে ফিরিয়ে আনতে সবার আগে নিজেকে সচেতন হতে হবে। আপনার সন্তানের গতিবিধির প্রতি লক্ষ রেখে তাদের খেলাধূলা ও শিক্ষামুলক অনুষ্ঠানগুলোতে বেশি বেশি করে সম্পৃক্ততা বাড়াতে হবে। প্রজন্মকে মাদক থেকে দুরে রাখতে এবং তাদের বুদ্ধি বিকাশে শিক্ষা প্রতিষ্ঠানগুলোতে বিভিন্ন বিষয়ের উপর বিতর্ক প্রতিযোগিতার আয়োজন করতে হবে। তিনি বলেন, বাঙালী বীরের জাতি। কোন অপশক্তির কাছে মাথা নত করেনি এবং হার মানেনি। আজো মানবে না। আমাদের যুক সমাজকে ধ্বংস করতে দেশের অভ্যন্তরে বিভিন্ন মাদকদ্রব্য, ডিজিটাল ক্রাইমসহ নানামুখী ষড়যন্ত্র চালিয়ে আসছে এক শ্রেনীর দেশদ্রোহী অসাধু মানুষেরা। তারা  থেমে নেই। দেশের সীমান্ত এলাকাগুলোতে সরকারের আইনশৃংখলা বাহিনীর নেয়া কঠোর পদক্ষেপের কারনে রুট পরিবর্তন করে দেশে মাদকদ্রব্য ঢুকাচ্ছে।  আমরা ৫২ ও ৭১-এ হারি নাই। আসুন শপথ নিই যে কোন মুল্যে দেশকে মাদকমুক্ত ও মাদকদ্রব্য প্রতিরোধ করতেও হার মানবো না। মাদকের চাহিদা কমাতে সামাজিক আন্দোলন গড়ে তুলতে হবে। চাহিদা কমলেই সরবরাহ কমবে। মাদকের ব্যবহার কমাতে মাদকদ্রব্য অধিদপ্তর সহ আইনশংখলা বাহিনী নিরলস পরিশ্রম করে যাচ্ছে। তাদেরকে সার্বিক সহযোগিতা করতে এগিয়ে আসতে হবে।

প্রধান অতিথি পাসপোর্ট অফিস, জেলা কারাগার, ফায়ার সার্ভিস ও মাদকদ্রব্য অধিদপ্তরের গ্রাহক সেবা ও হয়রানী, দুর্নীতি অনিয়ম সম্পর্কে কর্মকর্তাদের সতর্ক করে বলেন- এটি আমার নিজের জেলা। এজেলার মানুষগুলো খুবই সাধারন ও সহজ সরল। এজেলার মানুষ হিসেবে আমি আপনাদের কাছে দাবী করে বলছি আপনাদের দপ্তরে যেয়ে মানুষ যেন তার ন্যায্য সেবা পাই সে বিষয়টি নিশ্চিত করতে হবে আপনাদেরকেই। কোন প্রকার অবহেলা, হয়রানী মেনে নেব না। তিনি জেলা কারাগারের সেবা সম্পর্কে বলেন আগের যে কোন সময়ের চেয়ে মাননীয় প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা কারাবন্দীদের সেবা, খাদ্যমান আধুনিক করেছেন। সেই সাথে কারাবন্দীদের অপরাধের জগত থেকে স্বাভাবিক জীবনে ফিরিয়ে আনতে নানামুখী বা কর্মমুখী প্রশিক্ষন দিচ্ছে। যা ৪০ বছর ধরেও হয়নি। তিনি জেলার দৌলতপুর উপজেলায় ফায়ার সার্ভিস ষ্টেশন নির্মাণসহ ফায়ার সার্ভিসকে আধুনিক কর্মক্ষম করে গড়ে  তোলা ও জেলার এই ৪ দপ্তরের সমস্যা সমাধান করতে প্রয়োজনীয় ব্যবস্থা নিবেন বলে আশা ব্যক্ত করেন।

সভাপতির বক্তব্যে কুষ্টিয়ার জেলা প্রশাসক মোঃ আসলাম হোসেন বলেন- মাদক নির্মুলে ও বাজার দর নিয়ন্ত্রণে যে মোবাইল কোর্ট সহ অভিযান চলছে, তা আগের মতই চলবে। এক্ষেত্রে আইনের প্রয়োগ যেন যথার্থই হয় সেদিকে লক্ষ্য রেখে মোবাইল কোর্ট পরিচালনা করতে হবে। এতে কিছু মানুষ ক্ষুদ্ধ হলেও অভিযুক্তকে তাৎক্ষনিক সাজা প্রদান করায় দেশের অধিকাংশ মানুষই এই মোবাইল কোর্টকে গ্রহন করেছেন। তিনি ইউএনও এবং নির্বাহী ম্যাজিস্ট্রেটদের উদ্দেশ্যে বলেন, মনে রাখতে হবে অভিযান চলাকালিন সময়ে নানান পরিচয় দিয়ে তোমাকে যেন তার পক্ষে ব্যবহার করতে না পারে।

জেলা প্রশাসক আসলাম হোসেন আরো বলেন, জনজীবনে দূর্ভোগ সৃষ্টি করে কোন বিশৃংখলা করতে দেয়া হবে না। দূর্ভোগ সৃষ্টিকারীদের কঠোরহস্তে দমন করা হবে। জননিরাপত্তা নিশ্চিত করতে আইনশৃংখলা রক্ষা বাহিনীর পাশাপাশি আপনাদের সবাইকে এগিয়ে আসতে হবে। আইনশৃংখলা রক্ষা বাহিনীর একার পক্ষে  গোটা জেলাকে আইনশৃঙ্খলা রক্ষা করা সম্ভব নয়। কোনভাবেই  জেলায় কোন অপ্রীতিকর ঘটনা ঘটতে দেয়া হবে না।

বিগত মাসের প্রতিবেদন তুলে ধরে তাকে সার্বিক সহযোগিতা করেন অতিরিক্ত জেলা ম্যাজিস্ট্রেট লুৎফুন নাহার। সভায় অন্যান্যের মধ্যে উপস্থিত ছিলেন কুষ্টিয়া পৌরসভার মেয়র আনোয়ার আলী, জেলা সিভিল সার্জন ডাঃ এইচএম আনোয়ারুল ইসলাম, জেলা আওয়ামীলীগের সভাপতি ও খোকসা উপজেলা চেয়ারম্যান আলহাজ¦ সদর উদ্দিন খান, জেলা আওয়ামীলীগের সাধারণ সম্পাদক আজগর আলী, কুষ্টিয়া জেলা পরিষদের চেয়ারম্যান ও জেলা আওয়ামীলীগের সহসভাপতি হাজী রবিউল ইসলাম, কুষ্টিয়ার অতিরিক্ত পুলিশ সুপার মোস্তাফিজুর রহমান, কুষ্টিয়া জেনারেল হাসপাতালের উপ-পরিচালক ডাঃ নুরুন্নাহার বেগম, মহিলা কলেজের অধ্যক্ষ সফিকুর রহমান খান, কুষ্টিয়া সদর উপজেলা চেয়ারম্যান ও শহর আওয়ামীলীগের সাধারণ সম্পাদক আতাউর রহমান আতা, দৌলতপুর উপজেলা চেয়ারম্যান এ্যাড. এজাজ আহমেদ মামুন, কুমারখালী উপজেলা চেয়ারম্যান আব্দুল মান্নান খান, কুমারখালি পৌরসভার মেয়র সামছুজ্জামান অরুন, সদর কুষ্টিয়া সদর উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা জুবায়ের হোসেন চৌধুরী, দৌলতপুর উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা শারমিন আক্তার, কুমারখালি উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা রাজিবুল ইসলাম খান, ভেড়ামারা উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা সোহেল মারুফ, মিরপুর উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা লিংকন বিশ^াস, খোকসা উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা মৌসুমী জেরিন কান্তা, জেল সুপার জাকের হোসেন, এনএসআই’র যুগ্ম পরিচালক ইদ্রিস আলী, জেলা আনসার ভিডিপি কমান্ডার সোহেল রানা, জেলা জাসদের সভাপতি গোলাম মহসীন, জেলা ট্রাক মালিক সমিতির নেতা নরেন্দ্র নাথ সাহা, গণপূর্ত বিভাগের নির্বাহী প্রকৌশলী আরিফুজ্জামান, বাস মালিক সমিতির কার্যকরী সভাপতি আতাহার আলী, বাসস জেলা প্রতিনিধি ও দৈনিক কুষ্টিয়ার কাগজ সম্পাদক সাংবাদিক নুর আলম দুলাল, জেলা মাধ্যমিক শিক্ষা কর্মকর্তা জাহেদুল হক, কুষ্টিয়া জিলা স্কুলে প্রধান শিক্ষক এফতে খাইরুল ইসলাম, বিশিষ্ট কবি ও আবৃত্তিকার আলম আরা জুঁই, বিআরটিএ’র ইন্সপেক্টর ওমর ফারুক, বিএফএ-সাধারণ সম্পাদক আব্দুল লতিফ, বড় বাজার ব্যবসায়ী সমিতির সভাপতি মোকারম হোসেন মোয়াজ্জেম, পল্লী বিদ্যুতের জিএম হারুন-অর-রশিদ, জেলা তথ্য কর্মকর্তা তৌহিদুজ্জামান, জেলা শিশু কর্মকর্তা মখলেছুর রহমান বাজার মনিটরিং অফিসার রবিউল ইসলাম প্রমুখ।

সভায় এছাড়াও নিরবচ্ছিন্ন বিদ্যুৎ সংযোগ বজায় রাখা, আইন শৃঙ্খলা রক্ষাকারী বাহিনীর নিয়মিত টহল অব্যাহত রাখা, পল্লী বিদ্যুতের ট্রান্সফরমার চুরি প্রতিরোধ, ইভটিজিং, কুষ্টিয়া সরকারী কলেজে বহিরাগতদের উপদ্রব বন্ধে ব্যবস্থা গ্রহন, যৌন হয়রানী এবং চলচ্চিত্রে অশ্লীলতা প্রতিরোধ, অবৈধ যান চলাচল নিয়ন্ত্রণ, মানব পাচার রোধ, বকেয়া বিদ্যুৎ বিল আদায়, ফরমালিন সনাক্তকরণে ফলের স্যাম্পল সংগ্রহকরণ ইত্যাদি বিষয়ে বিশদ আলোচনা করা হয়।

করোনাভাইরাসে স্কুল-কলেজ বন্ধের পরিস্থিতি হয়নি

ঢাকা অফিস ॥ বাংলাদেশে করোনাভাইরাসে আক্রান্ত তিন জনকে শনাক্ত করা হয়েছে। আক্রান্ত তিন রোগী শনাক্ত হলেও এটা দ্রুত ছড়িয়ে পড়বে না বলে আশা প্রকাশ করেছেন সরকারের রোগতত্ত্ব, রোগ নিয়ন্ত্রণ ও গবেষণা ইনস্টিটিউট (আইইডিসিআর) পরিচালক মীরজাদী সেব্রিনা ফ্লোরা। তিনি বলেন, স্কুল কলেজ বন্ধ করে দেয়ার মতো কোনো পরিস্থিতিই তৈরি এখনো হয়নি। গতকাল রোববার বিকেলে নিয়মিত ব্রিফিংয়ে এ কথা বলেন তিনি। তিনি বলেন, আমরা আশঙ্কা করি না যে, এটা দ্রুত ছড়িয়ে পড়বে। কারণ আমরা ব্যবস্থা নিয়েছি, রোগীকে দ্রুত শনাক্ত করে তাকে আইসোলেট করে ফেলার। সেব্রিনা বলেন, এ পর্যন্ত সংগৃহীত এবং পরীক্ষিত নমুনা ১১৬টি। গত ২৪ ঘণ্টায় পাঁচটি নমুনা সংগ্রহ করেছি। এতদিন আমরা যা বলেছি আজকে আর তা বলতে পারছি না। আমাদের এই সার্ভেইলেন্স পদ্ধতির মাধ্যমে তিনজন রোগীকে শনাক্ত করেছি। তিনজন রোগীর মধ্যে দুজন ইতালি থেকে ভ্রমণ করে এসেছেন। একজন তারই পরিবারের সদস্য শনাক্ত করেছি আমরা। তিনজন রোগীর অবস্থা স্থিতিশীল তাদের মধ্যে একজনের মৃদু উপসর্গ ছিল, অল্প জ্বর ছিল। একজনের কাশি ছিল এবং একজনের জ্বর এবং কাশি দুটিই ছিল। তিনজন রোগীই চিকিৎসাধীন। তারা আমাদের আইসোলেশনে থাকবেন। এই তিনজন ছাড়াও আরো দুজনকে হাসপাতালের কোয়ারেন্টাইনে রাখা হয়েছে। বিশ্বব্যাপী ছড়িয়ে পড়া করোনাভাইরাসে এখন পর্যন্ত ১ লাখ ৬ হাজার ১৯৫ জন আক্রান্ত হয়েছেন। বিশ্বব্যাপী ১০৩টি দেশ ও অঞ্চলে এই ভাইরাসের প্রকোপ ছড়িয়ে পড়েছে। এতে মৃতের সংখ্যা দাঁড়িয়েছে ৩ হাজার ৬০০ জনে। শুধু চীনের মূল ভূখ-েই ৮০ হাজার ৬৯৬ জন আক্রান্ত এবং ৩ হাজার ৯৭ জনের মৃত্যু হয়েছে। চীনের বাইরে করোনায় আক্রান্তের সংখ্যা সবচেয়ে বেশি দক্ষিণ কোরিয়ায়। দেশটিতে অন্তত ৭ হাজার ১৩৪ আক্রান্ত হয়েছেন এবং মারা গেছেন ৫০ জন। চীনের বাইরে সবচেয়ে বেশি মৃত্যু হয়েছে ইতালিতে। সেখানে আক্রান্তের সংখ্যা ৫ হাজার ৮৮৩ এবং মৃত্যু হয়েছে ২৩৩ জনের। অপরদিকে, ইরানে এখন পর্যন্ত ৫ হাজার ৮২৩ জন এই ভাইরাসে আক্রান্ত হয়েছে এবং মারা গেছে ১৪৫ জন।

ফকির লালন শাহের স্মরণোৎসবের উদ্বোধনীতে প্রতিমন্ত্রী কে এম খালিদ

বিশ্বে আজ সর্বাজনীন হয়ে উঠেছে লালন সাঁইয়ের বাউল মতবাদ  

আরিফ মেহমুদ ॥ সংস্কৃতি বিষয়ক মন্ত্রণালয়ের প্রতিমন্ত্রী কে এম খালিদ এমপি বলেছেন, আমার প্রথম আসা এই বাউল আখড়াবাড়িতে। এসেই বুঝলাম এই মহাজ্ঞানী লালনের সৃষ্টির কৃর্তি আজ আর কুষ্টিয়ার কুমারখালির ছেঁউড়িয়ার আখড়াবাড়ীর মধ্যে আবদ্ধ নেই। লালন সাঁইয়ের সৃষ্টি বিশ্বে সর্বাজনীন হয়ে উঠেছে। মানব সেবার ব্রত নিয়ে অসংখ্য গান লিখে গেছেন। তাঁর এই অমর সৃষ্টি সঙ্গীত কোন ধর্মের মধ্যেই সীমাবদ্ধ ছিল না। এদিকে যেমন তাঁর সৃষ্টি ছড়িয়েছে বিশ্বে তেমনি তাঁকে নিয়ে হচ্ছে উন্নতর গবেষনা। লালন সাঁই জাত-ধর্মের সীমাবদ্ধতার বাইরে মানুষকে সবার উপর তুলে ধরেছেন। লালন সাঁইয়ের বাউল মতবাদ আজ বিশ্বে সর্বাজনীন হয়ে উঠেছে। বাউল সম্রাট ফকির লালন সাঁইয়ের স্মরণোৎসবে আত্মসুধ্যির উদাসীর টানে দেশ-বিদেশের বাউল-ফকিরবৃন্দরা ছুটে আসে এই আখড়া বাড়ীতে। তাঁর আত্মতত্ব মানুষকে শান্তির পথ দেখায়, সুখের সন্ধ্যান দেয় জাগতিক মোহ থেকে রাখে মুক্ত।

গতকাল রবিবার রাতে ছেঁউড়িয়ার আখড়া বাড়ীতে লালন একাডেমির আয়োজনে ৩ দিনব্যাপী বাউল সম্রাট ফকির লালন সাঁইয়ের স্মরণোৎসব (দোলপূর্ণিমা) অনুষ্ঠানমালার উদ্বোধনী দিনের আলোচনা সভায় প্রধান অতিথির বক্তব্যে তিনি এ সব কথা বলেন। তিনি আরো বলেন, তাঁর কর্মসাধনা দেশের গন্ডি পেরিয়ে বহির্বিশে^ ছড়িয়ে পড়েছে। সাধুরা এই আখড়াবাড়ীতে এসে সত্য পথে চলার মন্ত্রে দিক্ষা নিয়ে নিজেদের আলোকিত করছেন। আজকের আধুনিক পৃথিবীতে যে সব লেখক গবেষক বাউল স¤্রাট ফকির লালন সাঁইয়ের উপর বই লিখেছেন আমি তাদের প্রত্যেককে আহবান জানাবো তারা যেন নিজ দায়িত্বে কুষ্টিয়ার ছেউড়িয়াতে লালন একাডেমির লাইব্রেরীতে এক কপি করে জমা দিয়ে যান। এতে করে দেশ-বিদেশের উৎসুক ভক্ত গবেষক ও আজকের প্রজন্ম লালন সাঁই সম্পর্কে সঠিক তথ্য জানতে পারবে।

বাউল সম্রাট ফকির লালন সাঁইয়ের অমরত্বের জন্যই কুষ্টিয়ার ছেউড়িয়া এখন বিশ্ব মরমীর তীর্থ কেন্দ্রে পরিনত হয়েছে। খুব শীঘ্রই ছেউড়িয়ায় সংস্কৃতি বিশ^াবিদ্যালয় প্রতিষ্টা করতে এবং অতিথিদের জন্য আধুনিক মানের রেষ্ট হাউজ নির্মাণ, লালন একাডেমির সার্বিক উন্নয়নে যা যা প্রয়োজন সহ সাধুদের সাধনায় প্রয়োজনীয় ব্যবস্থা নেয়ার ঘোষনা দেন তিনি। যেখানে লালনের গানের স্বরোলিপি সহ তাঁর আধ্যাতিকতা সম্পর্কে বিস্তারিতভাবে জানা যাবে।  উদ্বোধনী দিনে কুষ্টিয়ার জেলা প্রশাসক মোঃ আসলাম হোসেনের সভাপতিত্বে অনুষ্ঠানে বিশেষ অতিথি হিসেবে বক্তব্য রাখেন কুষ্টিয়া-৪ (খোকসা-কুমারখালী) আসনের এমপি ব্যারিষ্টার সেলিম আলতাফ জর্জ, কুষ্টিয়ার অতিরিক্ত পুলিশ সুপার মোস্তাফিজুর রহমান, কুষ্টিয়া জেলা পরিষদের চেয়ারম্যান হাজী রবিউল ইসলাম, কুষ্টিয়া জজকোর্টের পিপি এ্যাড.অনুপ কুমার নন্দী, কুষ্টিয়া জজকোর্টের জিপি এ্যাড. আ. স. ম. আখতারুজ্জামান মাসুম, সাংবাদিক রাশেদুল ইসলাম প্রমুখ। অনুষ্ঠানে প্রধান আলোচক হিসেবে আলোচনা করেন ইসলামী বিশ^বিদ্যালয়ের উপ-উপাচার্জ প্রফেসর ড. মোঃ শাহিনুর রহমান। লালন সাঁইজির ধ্যান-সাধনা, রচনা ও বাউলতত্ব নিয়ে আলোচক হিসেবে আলোচনা করেন লালন মাজারের খাদেম মোহাম্মদ আলী। শুভেচ্ছ বক্তব্য রাখেন কুষ্টিয়ার অতিরিক্ত জেলা প্রশাসক (রাজস্ব) ওবাইদুর রহমান। স্বাগত বক্তব্য রাখেন কুষ্টিয়া জেলা প্রশাসনের এনডিসি ও লালন একাডেমির এ্যাডহক কমিটির সদস্য সচিব মুহাম্মদ মুছাব্বেরুল ইসলাম।

আলোচনা শেষে অতিথিদের কুষ্টিয়া লালন একাডেমীর পক্ষ থেকে ফুলের তোড়া, আত্মসুদ্ধির প্রতীক একতারা ও নবনির্মিত একতারার ক্রেষ্ট উপহার দিয়ে বরণ করে নেন। প্রধান আলোচক ইসলামী বিশ^বিদ্যালয়ের উপ-উপাচার্জ প্রফেসর ড.মোঃ শাহিনুর রহমান বলেন, বাউল সম্রাট ফকির লালন শাহ বাঙালী সংস্কৃতির এক মহান প্রতিনিধি। বাংলা সংস্কৃতির মূল ধারা লোকসংস্কৃতি। এই ধারাকে যারা পুষ্ট করেছে ফকির লালন তাদেরই একজন। সম্প্রদায় সম্প্রীতি ও ধর্মান্ধ মৌলবাদের বিরুদ্ধে তাঁর ফকিরীবাদ বাউলতত্ব মানুষের প্রধান দর্শন। বাউল সম্রাট ফকির লালন শাহ বাঙালী সংস্কৃতির এক মহান প্রতিনিধি। বাঙালী সংস্কৃতির মহান প্রতিনিধি লালন ফকির, গানে ও সাধনায় তার দর্শণে সেই মানবিক মূল্যবোধে সেই সামাজিক চেতনায় গভীর, লালন ফকির একই সঙ্গে মরমী এবং দ্রোহী, তার গানের ভেতর দিয়ে বাউল সাধনার নানা প্রসঙ্গ অনুসৃত হয়েছে। তার গানের ভেতর দিযে সমাজের অসঙ্গতি, কুপ্রথা সকল জাতপাতের ও অন্যায়ের বিরুদ্ধে লড়াই করেছেন।

দ্বিতীয় পর্বের সঙ্গীতানুষ্ঠানে সঙ্গীত পরিবেশন করেন বাংলাদেশের প্রখ্যাত লালন সঙ্গীত শিল্পী উদ্বোধনী সঙ্গীত পরিবেশন করেন লালন একাডেমীর সাবেক সদস্য বাউল আব্দুল কুদ্দুস। সঙ্গীত পরিবেশন করেন সমির বাউল, খুরশিদ আলম, সুফিয়া কাঙালিনী। গভীর রাত পর্যন্ত চলে এই সংগীত পরিবেশন। স্মরণোৎসব অনুষ্ঠানের সার্বিক উপস্থাপনা ও পরিচালনা করেন ফারহানা ইয়াসমিন ও কনক চৌধুরী।

মার্চ-এপ্রিল মাস পুঁই চাষের জন্য উপযুক্ত সময়

কৃষি প্রতিবেদক ॥ গ্রীষ্মকালে বাংলাদেশের অন্যতম লতানো ও পাতাজাতীয় সবজি পুঁই। দীর্ঘজীবী তবে সাধারণত বর্ষজীবী হিসেবে জন্মানো পুঁইয়ের পাতা ও কচি ডগা ছাড়াও কিছুটা শক্ত ও আঁশযুক্ত শাখা-প্রশাখাও ডাঁটার মতো খাওয়া যায়। ভিটামিন এ, ক্যালসিয়াম, আয়রন ও ম্যাগনেসিয়াম সমৃদ্ধ পুঁইশাক লতানো প্রকৃতির হওয়ায় বসতবাড়িতে বেড়া বা দেয়ালঘেঁষা মাচায় সহজেই লাগানো যায়। এমনকি ছাদ বাগানে বা বারান্দার গ্রিলেও পুঁই বেড়ে উঠতে পারে। সুষ্ঠু ব্যবস্থাপনার মাধ্যমে শীতের দুই-তিন মাস ছাড়া প্রায় সারাবছরই পুঁইশাক পাওয়া যায়। স্বল্প সময়ে একই গাছ থেকে কয়েকবারে শাক ও ডগা সংগ্রহ করা যায় বলে বাণিজ্যিক চাষে পুঁইশাক  বেশ লাভজনক। বিজ্ঞানীদের ধারণা পুঁইশাকের উৎপত্তি দক্ষিণ এশিয়া বিশেষ করে বাংলাদেশ থেকে শ্রীলংকা পর্যন্ত বিস্তৃত এলাকার মধ্যে। তবে বাংলাদেশ ও ভারতেই পুঁইশাকের চাষ বেশি হয়ে থাকে। বর্তমানে আফ্রিকা ও আমেরিকার নিরক্ষীয় অঞ্চলেও সীমিত আকারে পুঁইয়ের চাষ হচ্ছে। আবহাওয়া ও মাটি ও জাত ঃ উষ্ণ ও আর্দ্র জলবায়ুতে পুঁইশাক ভালো জন্মায়। কষ্টসহিষ্ণু গাছ বলে অতিবৃষ্টিতেও এর খুব একটা ক্ষতি না হলেও জলাবদ্ধতায় গাছের গোড়া ক্ষতিগ্রস্ত হয়। আবার আংশিক ছায়াতেও জন্মে এবং বেড়ে ওঠে। সুনিষ্কাষিত এবং দো-আঁশ ও এঁটেল দো-আঁশ ধরনের উর্বর মাটি পুঁইয়ের জন্য উপযোগী। তবে বর্ষার আগেই ফসল সংগ্রহ শেষ করতে হলে বেলে দো-আঁশ মাটিতে চাষ করা ভালো। বাংলাদেশে সবুজ ও লাল কান্ডবিশিষ্ট দুই জাতের পুঁইশাক  দেখা যায়। আবহাওয়া ও সার-পানি ব্যবস্থাপনার ওপর এ জাতগুলোতে কান্ডের ব্যাস, পর্বমধ্যের দৈর্ঘ্য, পাতার আকার ও আকৃতি, লতানো ও ঝোপালো স্বভাব ইত্যাদি বৈশিষ্ট্যের ভিন্নতা লক্ষ্য করা যায়। বীজ বপনকাল ঃ  সাধারণত মার্চ-এপ্রিল মাস পুঁই চাষের জন্য উপযুক্ত সময়। আগাম চাষ করতে হলে ফেব্র“য়ারি মাসে বীজ বপন করতে হয়। নাবি চাষে মে মাসে চারা বা ডগা কাটিং লাগাতে হয়। বীজ হার ও বীজতলায় চারা তৈরি ঃ ৩ মিটার দৈর্ঘ্য ও ১ মিটার প্রস্থের ১২টি বেডের জন্য এক কেজি বীজ প্রয়োজন হয়, যা দিয়ে এক হেক্টর জমিতে পুঁই চারা রোপণ করা যায়। ১২-১৫ ঘণ্টা ছিপছিপানো পানিতে ভিজিয়ে রেখে বীজতলায় ১-২  সেন্টিমিটার মাটির গভীরে বীজ বপন করতে হয়। চারার বয়স ৩০-৪০ দিন হলে বা চারার ৩-৫ পাতা হলে ৬০-৮০ সেন্টিমিটার দূরত্বের সারিতে ৫০ সেন্টিমিটার পর পর চারা রোপণ করতে হয়। সরাসরি বেডে বা ক্ষেতে বীজ বপন করে পুঁই চাষ করলে গাছে বৃদ্ধি তুলনামূলক ধীর হয়। সেজন্য বীজতলায় চারা তৈরি করে বেডে বা  ক্ষেতে রোপণ করলে গাছ দ্রুত বৃদ্ধি পায়। শাখা কলম দিয়েও পুঁই চাষ করা যায়। তবে বীজ থেকে উৎপন্ন চারা রোপণ করাই ভালো। বর্ষাকালে পুঁই গাছের ডগা  কেটেও রোপণ করা যায়। জমি তৈরি, সার ও সেচ প্রয়োগ ঃ জমি ২-৩টি চাষ দেয়ার পর মই দিয়ে সমান করে ১ মিটার পর পর ২৫-৩০ সেন্টিমিটার নালা রেখে বেড  তৈরি করতে হয়। পুঁই চাষে শুকনো পচা গোবর বা কম্পোস্ট সার ব্যবহার করা ভালো। তবে মাটিতে জৈব পদার্থের উপস্থিতির ওপর নির্ভর করে জৈব সারের সঙ্গে প্রতি শতকে গোবর বা কম্পোস্ট ৪০ কেজি, ইউরিয়া ১ কেজি, টিএসপি ৫০০ গ্রাম ও এমওপি সার ৫০০ গ্রাম প্রয়োগ করতে হয়। সম্পূর্ণ গোবর বা কম্পোস্ট, অর্ধেক টিএসপি ও পটাশ সার জমি তৈরির সময় এবং বাকি অর্ধেক টিএসপি ও পটাশ সার চারা রোপণের সময় গর্তে দিতে হয়। ইউরিয়া সার রোপণের ৮-১০ দিন পর অথবা চারায় ১-২টি নতুন পাতা গজালে প্রথমবার এবং এরপর ১০-১২ দিন বিরতি দিয়ে দ্বিতীয় ও তৃতীয়বার গাছের গোড়ায় প্রয়োগ করলে ভালো ফলন পাওয়া যায়। সার প্রয়োগের পর হালকা সেচ দিতে হয়। লেখক ঃ কৃষিবিদ খোন্দকার মো. মেসবাহুল ইসলাম

সাংসদীয় কাজে দক্ষতার পুরস্কার পেলেন নুসরাত

বিনোদন বাজার ॥ মাত্র এক বছরের মধ্যেই সাংসদীয় কাজে দক্ষতা প্রদর্শনের জন্য অভিনেত্রী নুসরাত জাহানের মাথায় জুড়ল নতুন পালক। কলকাতা এই নায়িকা সম্মানিত হলেন ‘তুমি অনন্যা’ পুরস্কারে।

আনন্দবাজার পত্রিকা জানিয়েছে, আন্তর্জাতিক নারী দিবসের ঠিক দুদিন আগে এক অ্যাওয়ার্ড শোয়ে ‘এক্সেলেন্স ইন পার্লামেন্টারি অ্যাফেয়ার্স’-এর জন্য নুসরাত পেলেন সেরার শিরোপা।

এদিন স্বামী নিখিলের পোশাকের আউটলেট ‘রঙ্গোলী’র শাড়িতেই নিজেকে সাজিয়েছিলেন নুসরাত।

কালো নেলপলিশ, গাঢ় লিপস্টিক আর ম্যাচিং গয়নার হাল্কা সাজেই নজর কেড়েছিলেন সাংসদ-অভিনেত্রী।

অ্যাওয়ার্ড পাওয়ার খবর সোশ্যাল মিডিয়াতেও পোস্ট করেছেন নুসরাত। লিখেছেন, ‘১৫ তম ‘তুমি অনন্যা সম্মান’ পেয়ে আমি খুশি। দেশ এবং দেশের মানুষের জন্য যাতে নিজের সেরাটা দিতে পারি।’

ওয়ানডে দলের নেতৃত্ব পেলেন তামিম

ক্রীড়া প্রতিবেদক ॥ বাংলাদেশের নতুন ওয়ানডে অধিনায়ক করা হয়েছে তামিম ইকবালকে। সদ্য বিদায়ী অধিনায়ক মাশরাফি বিন মুর্তজার স্থলাভিষিক্ত হলেন অভিজ্ঞ এই ওপেনার। মিরপুওে গতকাল রোববার সন্ধ্যায় বাংলাদেশ ক্রিকেট বোর্ডের পরিচালনা পর্ষদের সভায় এই সিদ্ধান্ত নেওয়া হয়। সংবাদ সম্মেলনে বিষয়টি জানান বিসিবি সভাপতি নাজমুল হাসান। তামিমকে ঠিক কতদিনের জন্য দায়িত্ব দেওয়া হয়েছে, সেটা অবশ্য জানানো হয়নি।   ওয়ানডের নতুন অধিনায়ক নির্বাচনসহ বিভিন্ন বিষয় নিয়ে রোববার মিরপুর শেরেবাংলা বৈঠকে বসেন বাংলাদেশ ক্রিকেট বোর্ডের (বিসিবি) পরিচালকরা। সভা শেষে বিসিবি সভাপতি নাজমুল হাসান পাপন বলেন, ওয়ানডে অধিনায়ক হিসেবে দায়িত্ব পালন করবেন তামিম ইকবাল। আমরা চাই সে লম্বা সময়ের জন্য অধিনায়কের দায়িত্ব পালন করুক। নিষেধাজ্ঞা কাটিয়ে সাকিব আল হাসান দলে ফিরলে নেতৃত্বে পরিবর্তন হবে কিনা জানাতে চাইলে পাপন বলেন, এই বিষয় নিয়ে আমরা আজ বোর্ড পরিচালকরা আলোচনা করেছি। আলোচনা শেষেই সিদ্ধান্ত নেয়া হয়েছে তামিমকে লংটাইমের জন্য অধিনায়ক হিসেবে নির্বাচিত করার বিষয়টি। এর আগে জাতীয় দলের সহ-অধিনায়কের ভূমিকা পালন করেছিলেন তামিম। জুয়াড়িদের কাছ থেকে ম্যাচ ফিক্সিংয়ের প্রস্তাব পেয়ে তা গোপন রাখার অপরাধে পেশাদার ক্রিকেট থেকে এক বছর নিষিদ্ধ সাকিব আল হাসান। আগামী অক্টোবরে তার নিষেধাজ্ঞা উঠে যাবে। সাকিব আল হাসানের অবর্তমানে টি-টোয়েন্টি ও টেস্ট দলের নেতৃত্বে আগে থেকেই রয়েছেন অলরাউন্ডার মাহমুদউল্লাহ রিয়াদ ও মুমিনুল হক সৌরভ। মুমিনুল হক সৌরভের অধীনেই আগামী মাসে ফের পাকিস্তানে টেস্ট খেলতে যাবে বাংলাদেশ দল। টেস্ট ম্যাচের আগে পাকিস্তান সফরে তামিম ইকবালের নেতৃত্বে একটি ওয়ানডে ম্যাচ খেলবে বাংলাদেশ।

 

 

বঙ্গবন্ধুকে নিয়ে চলচ্চিত্র ‘বুনন’

বিনোদন বাজার ॥ জাতির পিতা বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানকে নিয়ে স্বল্পদৈর্ঘ্য একটি চলচ্চিত্র নির্মাণ করেছে রাজশাহী কলেজ। বঙ্গবন্ধুর জন্মশতবার্ষিকী মুজিববর্ষ উপলক্ষেই চলচ্চিত্রটি নির্মিত হয়েছে।

আগামী ১৭ মার্চ মুজিববর্ষের আনুষ্ঠানিকতা শুরুর দিনই পর্দায় উঠবে চলচ্চিত্রটি। কলেজের অনুষ্ঠানে সেটি প্রদর্শিত হবে।

‘বুনন’ নামের এই চলচ্চিত্রে বঙ্গবন্ধুর চরিত্রে অভিনয় করেছেন গোপালগঞ্জের কাশিয়ানি উপজেলার আরুক মুন্সী। তার চেহারাই বেশ মিল রয়েছে বঙ্গবন্ধুর সঙ্গে।

তিনি পোশাক-আশাক থেকে শুরু করে চুল, গোঁফ রাখেন বঙ্গবন্ধুর মতো। তার সঙ্গে জাতীয় চার নেতার চরিত্রে অভিনয় করেছেন আরও চারজন। জাতীয় চার নেতার সঙ্গে এই চার অভিনেতারও মিল রয়েছে। মুজিববর্ষে এটি এই চলচ্চিত্রের আকর্ষণ।

নাট্যজন মাহমুদ হোসেন মাসুদের গল্পে গল্পটি রচনা করেছেন রাজশাহী কলেজের অধ্যক্ষ প্রফেসর হবিবুর রহমান। চলচ্চিত্রটি নির্বাক, শুধু দৃশ্য দিয়েই বঙ্গবন্ধুর ৭ মার্চের ভাষণ থেকে গল্পের শুরু হয়েছে।

১৯৭৫ সালের ১৫ আগস্টের নির্মম হত্যাযজ্ঞও ফুটিয়ে তোলা হয়েছে চলচ্চিত্রে। এখন বঙ্গবন্ধুর স্বপ্নের সোনার বাংলা গড়ার যে কাজ চলছে সেটিও দেখা যাবে ১৪ মিনিটের এই চলচ্চিত্রে।

এর চিত্রনাট্য ও পরিচালনা করেছেন কলেজের মনোবিজ্ঞান বিভাগের শিক্ষার্থী ও নাট্য অভিনেতা মাইনুল ইসলাম টিপু। চিত্রগ্রহণ করেছেন শাহরিয়ার চয়ন। সম্প্রতি রাজশাহীর পদ্মা নদী, রাজশাহী কলেজসহ বিভিন্ন স্থানে এর দৃশ্য ধারণ করা হয়েছে।

অধ্যক্ষ প্রফেসর হবিবুর রহমান বলেন, ৭ মার্চে বঙ্গবন্ধুর স্বাধীনতার ডাক, অর্থাৎ ৭ মার্চ থেকে গল্প শুরু হয়েছে। তার ভাষণের পরে মুক্তিযুদ্ধ, স্বদেশ প্রত্যাবর্তন এবং পরবর্তী সময়ে যুদ্ধ বিধ্বস্ত একটি দেশকে পুনর্গঠনের কাজ ফুটিয়ে তোলা হয়েছে।

এছাড়া বঙ্গবন্ধু ও জাতীয় চার নেতাকে হত্যার পর মানুষের মধ্যে যে শঙ্কার উদয় হয় যে দেশটি এগোবে কিভাবে; সেসব ঘটনাগুলোই চলচ্চিত্রে দেখানো হবে।

চলচ্চিত্রটির পরিচালক মাইনুল ইসলাম টিপু বলেন, দেশ কিভাবে এগোবে সেই শঙ্কা উড়িয়ে দিয়ে বঙ্গবন্ধুর আদর্শ লালনকারী ও তার উত্তরসূরি প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা দেশের হাল যেভাবে ধরেছেন এবং বঙ্গবন্ধুর ‘সোনার বাংলা’ গড়তে বিভিন্ন মেগা প্রকল্প বাস্তবায়ন করে চলেছেন সেগুলোও স্বল্পদৈর্ঘ্য এই চলচ্চিত্রে দেখানো হয়েছে। নির্বাক হলেও চলচ্চিত্রে একটি গান রয়েছে। এটি রচনা করেছেন মাহমুদ হোসেন মাসুদ।

ভারতকে উড়িয়ে বিশ্বকাপ জিতল অস্ট্রেলিয়া

ক্রীড়া প্রতিবেদক ॥ নিজেদের ঘরের মাঠে ভারতীয় নারী ক্রিকেট দলকে পাত্তাই দিল না অস্ট্রেলিয়া। ভারতের নারী দলের বিপক্ষে একচ্ছত্র আধিপত্য বিস্তার করে ৮৫ রানের বড় ব্যবধানে জিতে নিয়েছে নারী টি-টোয়েন্টি বিশ্বকাপের ফাইনাল ম্যাচ। নারীদের টি-টোয়েন্টি বিশ্বকাপের ইতিহাসে সাত আসরের মধ্যে এ নিয়ে পঞ্চমবারের মতো চ্যাম্পিয়ন হলো অস্ট্রেলিয়া। বাকি দুইবার শিরোপা গেছে ইংল্যান্ড ও ওয়েস্ট ইন্ডিজের ঘরে। একপেশে ফাইনাল ম্যাচে অস্ট্রেলিয়ার বিপক্ষে ¯্রফে উড়ে গিয়েছে ভারতীয় নারী ক্রিকেট দল। আগে ব্যাট করে ১৮৪ রানের পাহাড়সম সংগ্রহ দাঁড় করিয়েছিল স্বাগতিকরা। জবাবে ভারতীয়রা অলআউট হয়েছে মাত্র ৯৯ রানে। রান তাড়া করতে নেমে শুরু থেকেই নিয়মিত বিরতিতে উইকেট হারাতে থাকে ভারত। আসরের অন্যতম মারকুটে ব্যাটার শেফালি ভার্মা সাজঘরে ফেরেন ইনিংসের তৃতীয় বলে, মাত্র ২ রান করে। ভারতের পতনের শুরুটাও ঠিক সেখান থেকেই। দ্বিতীয় ওভারে জোড়া ধাক্কা খায় ভারত। প্রথমে মাথায় বল লেগে আহত অবসর হয়ে মাঠ ছাড়তে বাধ্য হন তানিনা ভাটিয়া। তিনি আর মাঠে নামতে পারেননি। সেই একই ওভারে রানের খাতা খোলার আগে আউট হয়ে যান দলের অন্যতম সেরা ব্যাটার জেমিমাহ রদ্রিগেজ। কিছুই করতে পারেননি আরেক ওপেনার স্মৃতি মান্ধানা কিংবা অধিনায়ক হারমানপ্রিত কৌর। পাল্টা আক্রমণ করতে গিয়ে ৮ বলে ১১ রান করে ফেরেন মান্ধানা, হারমানের ব্যাট থেকে আসে ৭ বলে ৪ রান। প্রথম ছয় ওভারের মধ্যেই ৪ উইকেট এবং তানিয়াকে হারিয়ে বিপদে পড়ে যায় ভারত। সেখান থেকে তাদেরকে একশর কাছাকাছি নিয়ে যান দিপ্তি শর্মা, ভেদা কৃষ্ণামূর্তি এবং রিচা ঘোষ। অলরাউন্ডার দিপ্তির ব্যাট থেকে আসে ৩৩ রান। এছাড়া ভেদা ১৯ ও রিচা করেন ১৮ রান। তানিয়ার কনকাশন সাব হিসেবে নেমেছিলেন রাজেশ্বরী গাইকোয়ার। তিনি বিশেষ কিছু করতে সক্ষম হননি। শেষপর্যন্ত ১৯.১ ওভারে ৯৯ রানে অলআউট হয়েছে ভারত। অস্ট্রেলিয়ার পক্ষে বল হাতে একাই ৪ উইকেট নিয়েছেন মেগান স্কট।এছাড়া জেস জোনাসেন শিকার করেছেন ৩টি উইকেট। এর আগে নিজেদের পরিচিত মাঠে টস জিতে আগে ব্যাট করার সিদ্ধান্ত নিয়েছিল চারবারের বিশ্ব চ্যাম্পিয়নরা। ডানহাতি এলিস হিলি ও বাঁহাতি বিথ মুনি উদ্বোধনী জুটিতেই ভারতকে ম্যাচ থেকে ছিটকে দেন। মজার বিষয় হলো- হিলি ও মুনি দুজনই উইকেটরক্ষক ব্যাটার। তবে সাধারণত হিলিই দাঁড়ান উইকেটের পেছনে। এ দুই ডানহাতি-বাঁহাতির আক্রমণাত্মক ব্যাটিংয়ে মাত্র ১১.৪ ওভারেই ১১৫ রানের উদ্বোধনী জুটি পায় অস্ট্রেলিয়া। মনে হচ্ছিলো, প্রথমবারের মতো ফাইনাল ম্যাচে সেঞ্চুরি তুলে নেবেন হিলি। কিন্তু দ্বাদশ ওভারে তিনি আউট হয়ে যান ৭৫ রান, তাও মাত্র ৩৯ বল খেলে। বিধ্বংসী এই ইনিংসে ৭টি চারের সঙ্গে ৫টি বিশাল ছক্কা হাঁকিয়েছেন হিলি। এ উইকেটরক্ষক ব্যাটারের আরেকটি পরিচয় হলো তিনি অস্ট্রেলিয়া পুরুষ ক্রিকেট দলের গতিতারকা মিচেল স্টার্কের স্ত্রী। আজ গ্যালারিতে বসেই নিজের স্ত্রীর বিধ্বংসী রূপ দেখেছেন স্টার্ক। হিলির উপস্থিতিতে রয়েসয়েই খেলছিলেন মুনি। তবে প্রথম উইকেট পতনের পর বেরিয়ে আসেন খোলস থেকে। ভারতীয় বোলারদের উইকেটের চারপাশে খেলে তুলে নেন হাফসেঞ্চুরি। শেষপর্যন্ত তিনি অপরাজিত থাকেন ৫৪ বলে ৭৮ রানের ইনিংস খেলে। চলতি বিশ্বকাপের সর্বোচ্চ রান সংগ্রাহকও তিনি। মূলত দুই ওপেনারের সত্তোরোর্ধ্ব দুই ইনিংসে ভর করেই ১৮৪ রানের বিশাল সংগ্রহ পেয়েছে অস্ট্রেলিয়া। এছাড়া অধিনায়ক ম্যাগ ল্যানিং করেছেন ১৬ বলে ১৬ রান। বাকি তিন ব্যাটসম্যানের কেউই দুই অঙ্কে যেতে পারেননি।

 

বাবার জুতা ছেলের পায়ে, যা বললেন অমিতাভ

বিনোদন বাজার ॥ অভিষেক বচ্চন এখন ব্যস্ত ‘বব বিশ্বাস’ ছবির কাজ নিয়ে। তার মাঝেই এমন কা- ঘটালেন বাবা অমিতাভ বচ্চন। নিজের জীবনের মজার ঘটনা থেকে শুরু করে কবিতা কিংবা কোনও স্মৃতি বা প্রতিবাদের কথা সবই টুইটারে তুলে ধরেন অমিতাভ। সম্প্রতি তিনি একটি ছবি সোশ্যাল মিডিয়ায় শেয়ার করেছেন। যেখানে তিনি এবং অভিষেক একদম একই রকম পোশাক পরে রয়েছেন।

নিজেদের কোলাজ ছবি পোস্ট করে অমিতাভ লিখেছেন, ‘বড়ে মিয়া তো বড়ে মিয়া, ছোটে মিয়া সুবহানআল্লাহ’। অমিতাভ ও গোবিন্দ অভিনীত সুপারহিট ছবি ‘বড় মিয়া ছোট মিয়া’ ছবির একটি সুপারহিট গানের লাইন এটি।

অমিতাভ লেখেন, ‘যখন তোমার ছেলে তোমার জামা-জুতো পরতে শুরু করবে, মনে করবে তখন থেকে সে তোমার বন্ধু।’

অমিতাভের জুতো ও কুর্তা পরে ফেলেছেন অভিষেক। আর তাতেই খুশি হয়ে এই পোস্ট করলেন ‘কি করে এই কা- করলে তুমি! জয় বাংলা, জয় বব বিশ্বাস।’

অমিতাভের এই পোস্ট রিতীমতো ভাইরাল সোশ্যাল মিডিয়ায়। অমিতাভ তার এই পোস্টের মাধ্যমে আর একবার বুঝিয়ে দিলেন অভিষেক তার কাছে ঠিক কতটা! সামনে এল বাবা-ছেলের মধুর সম্পর্কও।

টি-টোয়েন্টি সিরিজে জয়ের শতভাগ সম্ভাবনা আছে জিম্বাবুয়ের ঃ উইলিয়ামসন

ক্রীড়া প্রতিবেদক ॥ বাংলাদেশের বিপক্ষে টি-টোয়েন্টি সিরিজে তাদের জয়ের শতভাগ সম্ভাবনা আছে বলে মনে করেন জিম্বাবুয়ের ভারপ্রাপ্ত অধিনায়ক। এবারের বাংলাদেশ সফরে মিরপুরে একমাত্র টেস্টে ইনিংস ব্যবধানে হারের পর তিন ম্যাচের ওয়ানডে সিরিজে হোয়াইটওয়াশড হয়েছে জিম্বাবুয়ে। ২০১০ সালের পর থেকে ওয়ানডেতে বাংলাদেশে স্বাগতিকদের কোনো ম্যাচে হারাতে পারেনি তারা। সে তুলনায় টি-টোয়েন্টিতে রেকর্ড বেশ ভালো। দুই দেশের ১১ ম্যাচের চারটিতে জিতেছে তারা, এর তিনটিই এসেছে বাংলাদেশে। গত বছর ত্রিদেশীয় টি-টোয়েন্টির সিরিজের প্রথম ম্যাচেও বাংলাদেশকে প্রায় হারিয়ে দিচ্ছিল জিম্বাবুয়ে। শেষ পর্যন্ত কোনোমতে জিততে পারে বাংলাদেশ। সেই ম্যাচেই বাউন্ডারিতে অসাধারণ এক ক্যাচ নিয়েছিলেন রায়ান বার্ল। দুই ম্যাচের টি-টোয়েন্টি সিরিজ শুরুর আগের দিন রোববার উইলিয়ামস জানালেন, এই সংস্করণ বলেই জয়ের আশা তার বেশি। “টি-টোয়েন্টিতে সুযোগ থাকে। যে কোনো দিকেই যেতে পারে ম্যাচ। এক ওভার, এমনকি দুটি বলও খেলার মোড় ঘুরিয়ে দিতে পারে। সংক্ষিপ্ত সংস্করণে মাঠে নামার আগে আমরা রোমাঞ্চিত। আমরা তরুণ একটি দল। ছেলেরা আশা করি উপভোগ করবে। মিরপুরে খেলাটাও রোমাঞ্চকর। সন্ধ্যায় খেলা, দুই ইনিংসে পিচের আচরণ ভিন্ন হতে পারে। দেখা যাক…।” “অবশ্যই, শতভাগ আমরা জিততে পারি। যেটা বলেছি, দুটি বলই টি-টোয়েন্টিতে পার্থক্য গড়ে দিতে পারে। আমরা তামিমকে দ্রুত ফেরাতে পারলে, যে কোনো কিছুই হতে পারে। সবশেষ টি-টোয়েন্টি ম্যাচে রায়ান বার্ল বাউন্ডারিতে দারুণ একটি ক্যাচ নিয়েছে, এরকম একটি মুহূর্ত বদলে দিতে পারে খেলা।”

মা হচ্ছেন কেটি পেরি

বিনোদন বাজার ॥ জনপ্রিয় পপ তারকা কেটি পেরি সন্তান সম্ভবা। তার নতুন প্রকাশিত গান ‘নেভার ওর্ন হোয়াইট’-এর মিউজিক ভিডিওতে এমনটাই অনুমান করা যাচ্ছিল। এরপর এক টুইটার বার্তায় মাতৃত্বের বিষয়টি নিশ্চিত করেছেন কেটি নিজেও। ইংলিশ অভিনেতা অরলান্ডো ব্লুমের সন্তানের মা হচ্ছেন মার্কিন গায়িকা কেটি পেরি।

বৃহস্পতিবার ইউটিউবে মুক্তি পেয়েছে কেটি পেরির নতুন মিউজিক ভিডিও ‘নেভার ওর হোয়াইট’। এর শেষ অংশে বেবি বাম্পসহ হাজির হন এই গায়িকা। পরবর্তী সময়ে ইনস্টাগ্রামে লাইভে এসে ব্রিটিশ

অভিনেতা অরলান্ডো ব্লুমের সন্তানের মা হওয়ার বিষয়টি নিশ্চিত করেন তিনি। কেটি পেরি বলেন, ‘সম্ভবত সবচেয়ে বেশি সময় গোপন রাখতে পেরেছি। আমি দেরি করলেও আপনারা এরইমধ্যে জেনে গেছেন। এই গ্রীষ্মে অনেককিছু হতে যাচ্ছে। আমরা অনেক খুশি।’

এরইমধ্যে অরলান্ডো ব্লুমের সঙ্গে বাগদান সেরেছেন কেটি পেরি। খুব শিগগিরই তারা বিয়ে করবেন বলে জানা গেছে। অরল্যান্ডো ব্লুম হবেন কেটি পেরির দ্বিতীয় স্বামী। এর আগে ব্রিটিশ কমেডিয়ান রাসেল ব্র্যান্ডকে ২০১০ সালে ভারতে বিয়ে করেন তিনি। তাদের ৯ বছর বয়সী একটি মেয়েও রয়েছে। তবে বিয়ের ২ বছর পরই তাদের বিচ্ছেদ হয়।

মেসির গোলে জয়ে ফিরল বার্সেলোনা

ক্রীড়া প্রতিবেদক ॥ দুই দলই যেন মেতে উঠেছিল সুযোগ নষ্টের মহড়ায়। লক্ষ্যেই সেভাবে রাখতে পারছিল না শট। জমজমাট লড়াইয়ে ব্যবধান গড়ে দিলেন লিওনেল মেসি। পেনাল্টি থেকে গোল করে দলকে ফেরালেন জয়ের পথে; সঙ্গে তুললেন লা লিগার শীর্ষেও। কাম্প নউয়ে লা লিগার ম্যাচে শনিবার রাতে ১-০ গোলে জিতেছে বার্সেলোনা। আগের ম্যাচে এল ক্লাসিকোয় রিয়াল মাদ্রিদের বিপক্ষে হেরেছিল কিকে সেতিয়েনের দল। সব ধরনের প্রতিযোগিতায় টানা ছয় জয় পাওয়া সোসিয়েদাদ শুরুতে চেপে ধরে বার্সেলোনাকে। শুরুর ধাক্কা সামাল দিয়ে ধীরে ধীরে আক্রমণে যায় স্বাগতিকরা। তবে একেবারে রক্ষণে ঢুকতে পারেনি সফরকারীরা। তবে সুযোগ পেলেই ভীতি ছড়িয়েছে। লিওনেল মেসির দারুণ পাস থেকে প্রথম ১৫ মিনিটে দুটি সুযোগ আসে মার্টিন ব্রাথওয়েটের সামনে। কোনোটিই কাজে লাগাতে পারেননি তিনি। ৩৩তম মিনিটে প্রথম বড় পরীক্ষার সামনে পড়েন মার্ক-আন্ড্র্রে টের স্টেগেন। ছুটে এসে বল নিয়ন্ত্রণে নেন বার্সেলোনা গোলরক্ষক। একটুর জন্য নাগাল পাননি সোসিয়েদাদের পোর্তো। ৪০তম মিনিটে দারুণ সুযোগ এসে যায় মেসির সামনে। সবশেষ ৭ ম্যাচের ছয়টিতেই জালের দেখা না পাওয়া এই ফরোয়ার্ড ব্যর্থ আবারও। বিপজ্জনক জায়গা থেকে একটুর জন্য লক্ষ্যে থাকেনি তার শট। দ্বিতীয়ার্ধের শুরুতেও সুযোগ আসে মেসির সামনে। ডান পায়ের শট লক্ষ্যে রাখতে পারেননি অধিনায়ক। ৬০তম মিনিটে আবার গোলের জন্য শট নেন, এবারও একটুর জন্য লক্ষ্যে থাকেনি। একের পর এক আক্রমণে সোসিয়েদাদকে কাঁপিয়ে দেয় বার্সেলোনা। ৬৫তম মিনিটে ইভান রাকিতিচের শট কর্নারের বিনিময় ঠেকান গোলরক্ষক। পরের মিনিট মেসির ক্রসে পিকে ঠিকঠাক হেড নিতে পারেননি। বিপজ্জনক জায়গায় তাকে খুঁজে পেয়েছিলেন মেসি। ৬৭তম মিনিটে আবার সুযোগ আসে রাকিতিচের সামনে। জর্দি আলবার নিচু ক্রসে একটুর জন্য পা ছোঁয়াতে পারেননি এই মিডফিল্ডার। পাল্টা আক্রমণে গিয়ে সুযোগ তৈরি করে সোসিয়েদাদও। তবে লক্ষ্য শট রাখতে পারেনি তারাও। ৮১তম মিনিটে মেসির সফল স্পট কিকে এগিয়ে যায় বার্সেলোনা। মিকেল ওইয়ারসাবালের হ্যান্ডবলের জন্য ভিএআরের সাহায্য নিয়ে পেনাল্টি দিয়েছিলেন রেফারি। যোগ করা সময়ে জালে বল পাঠিয়েছিলেন জর্দি আলবা। তবে মেসির কাছ থেকে বল পাওয়ার সময় আনসু ফাতি অফ সাইডে থাকায় ভিএআরের সাহায্য নিয়ে গোল দেননি রেফারি। ২৭ ম্যাচে ৫৮ পয়েন্ট নিয়ে শীর্ষে ফিরেছে বার্সেলোনা। এক ম্যাচ কম খেলে ৫৬ পয়েন্ট নিয়ে তাদের পেছনেই রয়েছে রিয়াল মাদ্রিদ।

এ বছরই সিনেমাটি মুক্তি দেয়ার ইচ্ছা আছে : হৃদি

বিনোদন বাজার ॥ মঞ্চে একাধারে অভিনয়, নির্দেশনার পাশাপাশি নাটক লিখে খ্যাতি কুড়িয়েছেন হৃদি হক। টেলিভিশন নাটকেও কাজ করে চলেছেন সমানতালে। এবার নির্মাণ করছেন সিনেমা। সরকারি অনুদানের এই সিনেমার নাম ‘১৯৭১ সেই সব দিন’। ২০১৮-১৯ অর্থবছরে পূর্ণদৈর্ঘ্য চলচ্চিত্র বিভাগে সরকারি অনুদান পেয়েছে হৃদি হকের ‘১৯৭১ সেই সব দিন’ সিনেমাটি। দীর্ঘ সময় ধরে চলেছে ছবিটির প্রস্তুতির কাজ। সম্প্রতি ঠাকুরগাঁও জেলায় শুরু করেছেন শুটিং। এই সিনেমাতে শুরুতেই চমক দিয়েছেন এই নির্মাতা। জনপ্রিয় টিভি চ্যানেল এইচবিওর ‘ইনভিজিবল স্টোরিজ’ ধারাবাহিকের কেন্দ্রীয় চরিত্রে অভিনয় করে আলোচনায় আসা সুদীপ বিশ্বাস এবং ঢাকাই সিনেমার গ্ল্যামার কন্যা পরীমণিকে নিয়েছে সিনেমাটির অন্যতম দুটি চরিত্রে। সুদীপের শুরুটা থিয়েটার থেকে। প্রাচ্যনাট স্কুলে প্রশিক্ষণ নিয়ে প্রাচ্যনাট নাট্যদলের সঙ্গেও কাজ করেছেন বেশ কিছুদিন। মঞ্চে অভিনয় করে টেলিভিশন নাটক এবং বিজ্ঞাপনচিত্রে মডেল হয়ে প্রশংসিত হয়েছেন। আর সম্প্রতি এইচবিও চ্যানেলের একটি ধারাবাহিকে অভিনয় করে আলোচিত হন।

অন্যদিকে পরীমণি গ্ল্যামার নিয়ে ঢাকাই বাণিজ্যিক ধারার সিনেমায় নিজেকে প্রতিষ্ঠিত করেছেন। সুদীপ ও পরীমণিকে নিয়ে নতুন সিনেমার মিশনে নেমেছেন হৃদি হক। গেল মঙ্গলবার থেকে টানা ৫ দিন ঠাকুরগাঁওয়ের বিভিন্ন জায়গায় ছবিটির শুটিং হওয়ার কথা জানিয়েছেন নির্মাতা হৃদি হক। এই নির্মাতা বলেন, ‘ইচ্ছে ছিল কয়েক দিন শুটিংয়ের পর সবাইকে জানাব। কিন্তু তা আর করতে পারলাম কই। তবে ভালো লাগছে এই ভেবে, আমাদের শুরুটা খুব সুন্দর হয়েছে। সিনেমাটিতে ১ মার্চ থেকে ১৬ ডিসেম্বরের একটা জার্নি দেখাব। এটি মূলত ড. ইনামুল হকের লেখা একটি নাটক। সেই কাহিনীটাকে মূল উপজীব্য ধরে সিনেমার জন্য অন্যরকম একটা গল্প লিখেছি। ভীষণ চ্যালেঞ্জিং কাজ। মুক্তিযুদ্ধকালীন সেই সময়টাকে তুলে আনা। সিনেমাটিতে অনেক বড় একটা টিম কাজ করছে। এখনই সবার নামগুলো বলব না। তবে বিশাল আয়োজনে ছবিটির কাজ হচ্ছে। চেষ্টা করছি ভালো কিছু করার।’

সিনেমাটি কবে মুক্তি পাবে জানতে চাইলে এই নির্মাতা বলেন, ‘চলতি বছরের ডিসেম্বরে মুক্তি দেয়ার ইচ্ছা আছে। সেটা না করতে পারলে ২০২১ সালের মার্চের মধ্যে সিনেমাটি দর্শক দেখতে পাবেন। দেশের বিভিন্ন লোকেশনে শুটিং হবে। যার জন্য সময় নিয়েই কাজটি করতে হচ্ছে। তাছাড়া মুক্তিযুদ্ধকালীন সময়কে ফ্রেমে ধরার জন্য অনেক প্রপস, সেট তৈরি করতে হচ্ছে।’ এই সিনেমাটির শুটিং শুরুর আগে গত নভেম্বর মাসে হৃদি হক মঞ্চে নির্দেশনা দিয়েছেন ‘আকাসে ফুইটেছে ফুল- লেটো কাহন’। এছাড়া ‘গহর বাদশা বানেছা পরী’ নির্দেশনা দিয়েও প্রশংসিত হয়েছেন তিনি। ইনামুল হক ও লাকী ইনাম দম্পতির মেয়ে হৃদি হকের বেড়ে ওঠা থিয়েটারের সঙ্গে। সেখান থেকেই গড়ে উঠেছে তার শিল্প মানস। ফলে এই গুণী তরুণের প্রথম সিনেমাটি দর্শকের কাছে প্রশংসিত হবে বলেই প্রত্যাশা সবার।