ছাত্রলীগ নেতা হত্যার অভিযুক্ত আসামি বন্দুকযুদ্ধে নিহত

ঢাকা অফিস ॥ নোয়াখালীর বেগমগঞ্জ উপজেলায় পুলিশের সঙ্গে বন্দুকযুদ্ধে ছাত্রলীগ নেতা রাকিবুল ইসলাম ওরফে রাকিব হত্যার অভিযুক্ত আসামি ইসলাম ওরফে কানা নজরুল (২৫) নামের একজন নিহত হয়েছেন। মঙ্গলবার ভোর পৌনে ৪টার দিকে উপজেলার আমানউল্লাপুর ইউনিয়নের জনকল্যাণ হাইস্কুল মাঠে এ বন্দুকযুদ্ধের ঘটনা ঘটে। নিহত নজরুল আমানউল্লাপুর ইউনিয়নের অভিরামপুর গ্রামের মৃত আব্দুল হাকিমের ছেলে। নিহত নজরুল স্থানীয় ছাত্রশিবিরের ক্যাডার পিয়াস বাহিনীর সেকেন্ড ইন কমান্ড এবং তার বিরুদ্ধে ছাত্রলীগ নেতা রাকিব হত্যাসহ তিনটি মামলা রয়েছে বলে পুলিশের দাবি।  ঘটনাস্থল থেকে একটি বিদেশি পিস্তল, তিন রাউন্ড গুলি, একটি ধামা, তিনটি ছোরা ও পাঁচটি কার্তুজের খোসা উদ্ধার করা হয়েছে বলে জানিয়েছে পুলিশ। বেগমগঞ্জ থানার ওসি হারুন-উর রশীদ চৌধুরী জানান, ভোর পৌনে ৪টার দিকে উপজেলার আমানউল্লাহপুর গ্রামের জনকল্যাণ মাঠে ছাত্রলীগ নেতা রাকিব হত্যা মামলার আসামিদের ধরতে থানা ও জেলা গোয়েন্দা পুলিশের (ডিবি) একটি যৌথ দল যায়। এ সময় শিবির ক্যাডার পিয়াস বাহিনীর সদস্যরা পুলিশকে লক্ষ্য করে গুলি ছোড়ে। এ সময় পুলিশও পাল্টা গুলি চালায়। গোলাগুলির একপর্যায়ে হামলাকারীরা পিছু হটে। পরে পুলিশ ঘটনাস্থল থেকে গুলিবিদ্ধ অবস্থায় নজরুলের মরদেহ উদ্ধার করা হয়। স্থানীয়রা তাকে শিবিরকর্মী ও ছাত্রলীগ নেতা রাকিব হত্যা মামলার আসামি ‘কানা নজরুল’ হিসেবে শনাক্ত করেন। জানা যায়, রেবিবার রাতে আমানউল্লাপুর ইউনিয়নে শিবিরের হামলায় আহত ছাত্রলীগকর্মী রাকিব চিকিৎসাধীন অবস্থায় সোমবার ঢাকা মেডিক্যাল কলেজ (ঢামেক) হাসপাতালে মারা যান। ওই ঘটনায় দায়ের করা মামলার আসামিদের ধরতে থানা ও গোয়েন্দা পুলিশ যৌথভাবে আমানউল্লাপুরে অভিযান চালায়।

ভেড়ামারায় বন্দুকযুদ্ধে ১৪ মামলার আসামি নিহত

ভেড়ামারা অফিস ॥ কুষ্টিয়ার ভেড়ামারায় পুলিশের সাথে বন্দুকযুদ্ধে ১৪ মামলার আসামি মোহন আলী (৩৫) নিহত হয়েছে। গতকাল সোমবার দিবাগত রাত ৩টার দিকে ভেড়ামারা উপজেলার কুষ্টিয়া-ঈশ্বরদী মহাসড়কের পাশে এ বন্দুকযুদ্ধের ঘটনা ঘটে। নিহত  মোহন আলী পার্শ্ববর্তী দৌলতপুর উপজেলার দৌলতখালি গ্রামের  তৌহিদুল ইসলাম ভাদুর ছেলে। তার বিরুদ্ধে বিভিন্ন থানায় ১৪টি মামলা রয়েছে বলে পুলিশ জানিয়েছে। ভেড়ামারা থানার অফিসার ইনচার্জ মোহাম্মদ শাহজালাল জানান, কুষ্টিয়া-ঈশ্বরদী মহাসড়কে ডাকাতির প্রস্তুতিকালে পুলিশের সাথে বন্দুকযুদ্ধে এক ব্যক্তি নিহত হয়। এসময় তার নাম-পরিচয় জানা না গেলেও ঘটনাস্থল থেকে অস্ত্র ও গুলি উদ্ধার করা হয়। পরে খোঁজ নিয়ে জানা যায় নিহত ব্যক্তি দৌলতপুর উপজেলার দৌলতখালি গ্রামের তৌহিদুল ইসলাম ভাদুর ছেলে মোহন আলী। তার বিরুদ্ধে বিভিন্ন থানায় বিভিন্ন অভিযোগে ১৪টি মামলা রয়েছে। নিহতের লাশ ময়নাতদন্তের জন্য কুষ্টিয়া জেনারেল হাসপাতালের মর্গে প্রেরণ করা হয়েছে বলে জানান ওসি।

‘বিশেষ ব্যবস্থায়’ থাকবেন মুজিববর্ষের অতিথিরা – স্বাস্থ্যমন্ত্রী

ঢাকা অফিস ॥ বিশ্বজুড়ে প্রাণঘাতী নভেল করোনাভাইরাস ছড়িয়ে পড়ার প্রেক্ষাপটে বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের জন্মশতবার্ষিকীর অনুষ্ঠানে যোগ দিতে যেসব বিদেশি অতিথি আসবেন, তাদের ‘বিশেষ ব্যবস্থায়’ রাখা হবে বলে স্বাস্থ্যমন্ত্রী জাহিদ মালেক জানিয়েছেন। বাংলাদেশে এখনও এই ‘ভাইরাস সংক্রমণ না ঘটায়’ আগামী ১৭ মার্চ বঙ্গবন্ধুর জন্মশতবার্ষিকীর উদ্বোধনী অনুষ্ঠান বাতিলের প্রয়োজন দেখেছেন না বলেও জানিয়েছেন তিনি। জাতির পিতার জন্মশতবার্ষিকী সাড়ম্বরে উদযাপন করবে বাংলাদেশ; বছরব্যাপী এই অনুষ্ঠানমালা শুরু হবে আগামী ১৭ মার্চ। মুজিববর্ষের উদ্বোধন অনুষ্ঠানে বিভিন্ন দেশের রাষ্ট্রনেতাদের আমন্ত্রণ জানানো হচ্ছে। করোনাভাইরাস নিয়ে সবশেষ পরিস্থিতি তুলে ধরতে মঙ্গলবার সচিবালয়ে সংবাদ সম্মেলনে আসেন স্বাস্থ্যমন্ত্রী। প্রাণঘাতী এই ভাইরাস ছড়িয়ে পড়ার আশঙ্কার মধ্যে বঙ্গবন্ধুর জন্মশতবার্ষিকীর উদ্বোধনী অনুষ্ঠান বাতিলের কোনো পরিকল্পনা আছে কি না, স্বাস্থ্যমন্ত্রীকে এই প্রশ্ন করেন একজন সাংবাদিক। জবাবে মন্ত্রী বলেন, “এই অনুষ্ঠান বাতিল করার এখতিয়ার আমাদের হাতে না। আমরা এ বিষয়ে এখন নিশ্চিত করে বলতে পারব না। আমাদের দেশে তো (করোনাভাইরাস) সংক্রমণ হয়নি যে অনুষ্ঠান বাতিল করতে হবে। যারা সিদ্ধান্ত দিতে পারবেন তারা পরিস্থিতি বুঝেই এটা পরবর্তী পদক্ষেপ নেবেন। “(বঙ্গবন্ধুর জন্মশতবার্ষিকীর অনুষ্ঠানে) যারা বিদেশ থেকে আসবেন তাদেরকে আমরা বিশেষ ব্যবস্থায় রাখব, তারা তো অল্প সময় থাকবেন। আশা করি, তারা ভালো থাকবেন, সুস্থ্ থাকবেন, সেইফ থাকবেন। তাদের যদি কোনো রকমের চিকিৎসার দরকার হয়, ব্যবস্থা তো আছে। ১৬ কোটি লোকের জন্য ব্যবস্থা আছে, তাদের জন্যও আমরা ব্যবস্থা নেব।” স্বাস্থ্যসেবা বিভাগের সচিব মো. আসাদুল ইসলাম বলেন, “(বঙ্গবন্ধুর জন্মশতবার্ষিকীর উদ্বোধনী অনুষ্ঠানে) সিলেকটেড হাইপ্রোফাইল গেস্ট আসবেন, তারা নিশ্চয় সচেতন। আর যে স্ক্রিনিং হচ্ছে সেটা ভিআইপি, সাধারণ প্যাসেঞ্জার সবাইই কিন্তু ওই প্যাসেজ দিয়েই আসবেন।” ভারতে করোনাভাইরাস ধরা পড়ার খবর প্রকাশের পরেও যুক্তরাষ্ট্রের প্রেসিডেন্ট ডনাল্ড ট্রাম্পের ভারত সফরের প্রসঙ্গ তুলে ধরেন স্বাস্থ্য অধিদপ্তরের মহাপরিচালক অধ্যাপক আবুল কালাম আজাদ। তিনি বলেন, “ভারতে করোনাভাইরাস ধরা পড়েছে। এই পরিস্থিতির মধ্যেও কিন্তু মার্কিন প্রেসিডেন্ট এসেছেন। আমাদের জাতীয় পর্যায়ের প্রস্তুতি আছে, মুজিববর্ষ অবশ্যই উদযাপন করা উচিত।ৃ তবে যারা আয়োজনে আছেন তারা অবশ্যই সম্পূর্ণ সতর্কতা অবলম্বন করেই সব কিছু করবেন।” করোনাভাইরাস সংক্রমণের কারণে বিশ্বের অনেক দেশে বহু অনুষ্ঠান বাতিল হওয়ার তথ্য জানিয়ে স্বাস্থ্যমন্ত্রী বলেন, “যেখানে মানুষ জড়ো হবে সেই অনুষ্ঠান বাদ দেওয়া হয়েছে। হ্যান্ডশেকটা আমরা আপাতত না করি, বাড়িতে গিয়ে কোনো কিছু ধরার আগে হাত ও মুখটা সাবান দিয়ে ধুয়ে ফেলি। “বাংলাদেশের প্রায় এক কোটি মানুষ বাইরে চাকরি করেন। যারা বিদেশে চাকরি করেন এই মুহূর্তে দেশে আসা বা দেশ থেকে যাওয়া জরুরি না হলে অ্যাভয়েড করতে হবে। “কারণ আমরা চাই না, আমাদের দেশ আক্রান্ত হয়ে যাক বা আমাদের বাঙালি যারা বিদেশে আছেন তারাও চান না দেশে তাদের পরিবার আক্রান্ত হয়ে যাক।”

কুষ্টিয়া জেলা ও দায়রা জজ আদালতের রায়

দৌলতপুরের মাদক মামলায় একজনের যাবজ্জীবন

নিজ সংবাদ ॥ কুষ্টিয়ার দৌলতপুর থানায় নিজ দায়িত্বে মাদকদ্রব্য ফেন্সিডিল রাখার অভিযোগে দায়ের করা মামলায় স্বপন আলী ওরফে এনামুল (৩৮) নামের একজনকে ২০ হাজার টাকা জরিমানা সহ যাবজ্জীবন সশ্রম কারাদন্ড দিয়েছেন আদালত। মঙ্গলবার বিকেলে কুষ্টিয়া জেলা ও দায়রা জজ আদালতের বিচারক অরূপ কুমার গোস্বামী আসামীর অনুপস্থিতিতে এক জনাকীর্ণ আদালতে এই রায় ঘোষনা করেন। রায় ঘোষনার সময় আসামী পলাতক ছিলেন। দন্ডপ্রাপ্ত স্বপন আলী ওরফে এনামুল পাবনা জেলার সদর উপজেলার ছোট মনোহরপুর (গাছপাড়া সি.এন.জি পাম্পের পিছনে) এলাকার আব্দুর রহমান খানের ছেলে। আদালত সূত্রে জানা গেছে, ২০১৭ সালের ১৯ জুন দৌলতপুর থানার শ্যামপুর পুলিশ ক্যাম্পের  এ.এস.আই(নিঃ) আবু হানিফ কামাল গোয়ালগ্রাম এলাকায় অবস্থানকালে গোপন সংবাদের ভিত্তিতে জানতে পারেন যে, একটি সাদা রংয়ের প্রাইভেট গাড়িতে অবৈধ ফেনসিডিল বিক্রির উদ্দেশ্যে বহন করে নিয়ে শেহালা রাস্তা দিয়ে খলিসাকুন্ডি হতে কুষ্টিয়া অভিমুখে যাচ্ছে। এমন সংবাদের ভিত্তিতে সংগীয় ফোর্সসহ রাত ২১.৪৫ টার সময় গোয়ালগ্রাম (কারিকরপাড়া) নবীর মালিথা’র চায়ের দোকানে সামনে পাকা রাস্তার উপর গাড়ির চেকিং করতে থাকেন। কিছুক্ষনের মধ্যে একটি সাদা রংয়ের প্রাইভেট কার তাদের দিকে আসলে তারা পুলিশের সংকেত দিলে প্রাইভেট কারটি থামা মাত্রই আসামীদ্বয় পালানোর চেষ্টাকালে আসামীদের ধরে ফেলে। এসময় তাদেরকে জিজ্ঞাসাবাদের এক পর্যায়ে তারা স্বীকার করে যে, তাদের নিকট থাকা প্রাইভেট কারে মাদকদ্রব্য ফেনসিডিল আছে। পুলিশ ড্রাইভারের সিটের নিচে অভিনব কায়দায় ৬০ বোতল ফেনসিডিল উদ্ধার করে। এ ব্যাপারে দৌলতপুর থানায় ১৯৯০ সালের মাদকদ্রব্য নিয়ন্ত্রণ আইনের ১৯ (১) ধারার টেবিলের ৩(খ) ও ২৫ ধারায় একটি মামলা দায়ের করেন। থানার মামলা নং-৩৫, তারিখ- ১৯-৬-২০১৭ইং। রাষ্ট্রপক্ষে মামলা পরিচালনাকারী পাবলিক প্রসিকিউটর (পিপি) অনুপ কুমার নন্দী জানান, মামলাটি তদন্ত শেষে একই বছরের ৩১ অক্টোবর পুলিশ আদালতে চার্জশিট (অভিযোগপত্র) দাখিল করলে মামলাটি সেশন ৪৪৫/২০১৮ নং মামলায় নথিভূক্ত হয়ে বিচার কাজ শুরু হয়। দীর্ঘ সাক্ষ্য শুনানি  শেষে আসামি স্বপন আলী ওরফে এনামুল বিরুদ্ধে আনীত অভিযোগ সন্দেহাতীত প্রমাণিত হওয়ায় তাকে যাবজ্জীবন সহ ২০ হাজার টাকা অর্থদন্ড দিয়েছেন। একই মামলায় অভিযুক্ত অন্য আসামি আতিয়ার রহমান নির্দোষ প্রমাণিত হওয়ায় তাকে বেকসুর খালাস দিয়েছেন আদালত। আসামী পক্ষে মামলাটি পরিচালনা করেন এ্যাড. দেওয়ান মাসুদ করিম মিঠু।

কুষ্টিয়ায় দু’দিনব্যাপী ‘সুশাসনের জন্য কৌশলগত যোগাযোগ’ বিষয়ক কর্মশালার সমাপনী

নিজ সংবাদ ॥ জাতীয় গণমাধ্যম ইনস্টিটিউট এবং পিফোরডি আয়োজিত সুশাসনের জন্য কৌশলগত যোগাযোগ বিষয়ক দু’দিনব্যাপী কর্মশালা শেষ হয়েছে গতকাল মঙ্গলবার। দুপুরে কর্মশালা শেষে অংশগ্রহনকারী সাংবাদিকদের মাঝে  সনদপত্র ও পুরস্কার বিতরন করা হয়। সমাপনী অনুষ্ঠানে সভাপতিত্ব করেন কুষ্টিয়ার সিনিয়র তথ্য অফিসার তৌহিদুজ্জামান। অনুষ্ঠানে উপস্থিত থেকে বক্তব্য রাখেন জাতীয় গণমাধ্যম ইনস্টিটিউট এর উপপরিচালক (প্রশাসন) সৈয়দ জাহিদুল ইসলাম, গণমাধ্যম ইনস্টিটিউট এর উপ-পরিচালক আবদুল গাফ্ফার, কোর্চ পরিচালক আইরিন সুলতানা। কালেরকন্ঠ প্রতিনিধি ও কুষ্টিয়া প্রেসক্লাবের সহসভাপতি তারিকুল হক তারিক, আরশীনগর পত্রিকার সম্পাদক রাশেদুল ইসলাম বিপ্লব।

এর আগে দ্বিতীয় দিনের প্রথম পর্বে জাতীয় গণমাধ্যম ইনস্টিটিউট এর উপপরিচালক (প্রশাসন) সৈয়দ জাহিদুল ইসলাম তথ্য অধিকার বিষয় নিয়ে আলোচনা করেন। তিনি তথ্য কী, তথ্য অধিকার কী, তথ্য অধিকার আইন ও এর বৈশিষ্ট, তথ্য অধিকার আইন কেন?, তথ্য অধিকার আইনে কি আছে? আবেদনের উপায়, তথ্য চেয়ে তথ্য না পেলে করনীয়, বাংলাদেশে তথ্য অধিকার আইন ব্যবহারের বাস্তবতা, তথ্য অধিকার  আইনের সুফল অর্জনে সাংবাদিকদের করণীয় বিষয়ে আলোচনা করেন। কুষ্টিয়া সদর উপজেলা নির্বাহী অফিসার জুবায়ের হোসেন চৌধুরী সিটিজেন চার্টার নিয়ে  আলোচনা করেন। তিনি সিটিজেন চার্টার বিষয়ে আলোচনায় সরকারী সকল প্রতিষ্ঠানে এর গুরুত্ব  তুলে ধরেন। সিটিজেন চাটারের মাধ্যমে জনগনের নাগরিক সুবিধা গ্রহন সহজ হয়। নাগরিকরা তাদের সেবা সম্পর্কে অবহিত হয় এবং সেই মোতাবেক নিজেদের সকল কর্মকান্ড পরিচালিত করতে পারেন। তিনি বলেন, সিটিজেন চার্টারে সরকারী সকল সেবার নাম উল্লেখ থাকে। এ বিষয়ে কোন দপ্তরের অনীহা বা কার্পন্যতার সুযোগ থাকে না। জেলা প্রশাসনের ২৩২টির বেশি সেবা প্রদানের সুযোগ রয়েছে। অনুরূপ উপজেলা প্রশাসনের অনেক সুযোগ রয়েছে। সুশাসন ও সোনার বাংলা গড়ে তোলার লক্ষ্যে ভিশন ও মিশন থাকতে হবে। সরকার ২০২১ ও ২০৪১ সালকে যথাক্রমে ভিশন ও মিশনের ঘোষনা দিয়ে সরকার সেই পথে এগিয়ে নিয়ে যাচ্ছে। আর সরকারের এই উদ্যোগের সাথে সকল বিভাগকে যথারীতি কাজ করে যেতে হচ্ছে। সরকারের এই উদ্দ্যেশ্য লক্ষ্যকে বাস্তবায়নে সাংবাদিকদের ভুমিকা কোনভাবেই খাটো করে দেখার সুযোগ নেই। সিটিজেন চার্টাররের পুর্ণবাস্তবায়নে ও সুফল অর্জনে সাংবাদিকদের করনীয় বিষয়গুলো সম্পর্কে জানা এবং সেই মতে কাজ করলে সমাজ উপকৃত হবে। পরে ৪টি গ্র“পে দুই দিনের কর্মশালা নিয়ে প্রতিবেদন উপস্থাপন করা হয়। সেখানে বিজয়ীদের মাঝে পুরস্কার বিতরণ করা হয়। সমাপনী অনুষ্ঠানে জাতীয় গণমাধ্যম ইনস্টিটিউট এর উপপরিচালক (প্রশাসন) সৈয়দ জাহিদুল ইসলাম বলেন- সকলের সমন্বয়ে সরকারের ৫টি মুল উদ্দেশ্যে বাস্তবায়ন সম্ভব আর এ ব্যাপারে সাংবাদিকদের গুরুত্ব অনেক বেশি। এই ধরনের কর্মশালার মাধ্যমে সাংবাদিকদেরকে সজাগ এবং সচেতন করে তোলা এবং দায়িত্ব ও কর্তব্য বোধকে জাগ্রত করা হয়। আপনারা সাংবাদিকেরা জাগ্রত হয়ে সরকারের লক্ষ্যে পৌছানোর কাজে সহযোগিতা করলে দেশ ও দেশের জনগন অনেকাংশে উপকৃত হতে পারে। তিনি আরো বলেন- দেশের ৪৬০টি উপজেলায় পর্যায়ক্রমে এই কর্মশালা অনুষ্ঠিত হবে। যাতে সাংবাদিকদের পেশাগত মান বৃদ্ধি এবং তথ্য সম্পর্কে জানা ধারনা গুলোকে শেয়ার করতে পারেন। উল্লেখ্য গত সোমবার থেকে কুষ্টিয়া সার্কিট হাউস হলরুমে সরকারের ৫টি পলিসি টুলস নিয়ে দুদিনের কর্মশালার সূচনা হয়। কর্মশালার উদ্বোধন করেন জাতীয় গণমাধ্যম ইনস্টিটিউটের মহাপরিচালক শাহিন ইসলাম (এনডিসি)। জাতীয় গণমাধ্যম ইনস্টিটিউটের পরিচালক মঞ্জুরুল আলমের সভাপতিত্বে এপিএ ও জিআরএস নিয়ে বিস্তারিত আলোচনায় অংশ। জেলা প্রশাসক মো, আসলাম হোসেন  বার্ষিক কর্মসম্পাদন চুক্তি বিষয়ক আলোচনা করেন। কর্মশালায় জাতীয় শুদ্ধাচার কৌশল বিষয়ে আলোচনায় অংশ নেন জাতীয় গণমাধ্যম ইনস্টিটিউট এর উপপরিচালক (প্রশাসন) সৈয়দ জাহিদুল ইসলাম। তথ্য অধিকার বিষয়ে আলোচনা করেন কুষ্টিয়ার জেলা সিনিয়র তথ্য কর্মকর্তা  তৌহিদুজ্জামান, এছাড়া কর্মশালায় সাংবাদিকদের বিভিন্ন প্রশ্নে জবাব দেন জাতীয় গণমাধ্যম ইনস্টিটিউট এর উপ-পরিচালক আবদুল গাফ্ফার। কোর্চ পরিচালক হিসেবে ছিলেন আইরিন সুলতানা। কুষ্টিয়ায় কর্মরত বিভিন্ন প্রিন্ট ও ইলেক্ট্রনিক মিডিয়ায় কর্মরত ২৫জন গণমাধ্যম কর্মী কর্মশালায় অংশগ্রহন করেন।

ভেড়ামারায় বৈদেশিক কর্মসংস্থানের জন্য দক্ষতা ও সচেতনতা শীর্ষক সেমিনারে ডিসি আসলাম হোসেন

প্রবাসী ভাইদের উপার্জিত অর্থ দিয়ে বাংলাদেশের অর্থনীতি চাকা সচল থাকে

আল-মাহাদী ॥ কুষ্টিয়া জেলা প্রশাসক আসলাম হোসেন বলেছেন, দক্ষতার অভাবে প্রবাসী ভাইয়েরা বিদেশ গিয়ে পদে পদে হয়রানির শিকার হয়ে থাকেন। তারা যেন হয়রানির শিকার না হয় সেদিকটা বিবেচনায় রাখতে হবে। কারণ তাদের উপার্জিত অর্থ দিয়ে বাংলাদেশের অর্থনীতি চাকা সচল থাকে। কুষ্টিয়ার ভেড়ামারায়  বৈদেশিক কর্মসংস্থানের জন্য দক্ষতা ও সচেতনতা শীর্ষক প্রচার, প্রেসব্রিফিং ও সেমিনারে প্রধান অতিথি’র বক্তব্যে উপরোক্ত কথাগুলো বলেন জেলা প্রশাসক আসলাম হোসেন। ‘‘জেনে, বুঝে বিদেশ যাই, অর্থ সম্মান দুটোই পাই’’ এ প্রতিপাদ্যে গতকাল মঙ্গলবার বেলা ১১টায় উপজেলা পরিষদের মিলনায়তনে এ অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথি জেলা প্রশাসক আসলাম হোসেন আরও বলেন, মানব সম্পদকে দক্ষ জনশক্তি হিসেবে গড়ে তুলতে পারলে জনসংখ্যা জনসম্পদে পরিণত হবে। এ জন্য প্রয়োজন প্রশিক্ষণ। আর প্রশিক্ষণ নিয়ে বিদেশে গেলে সেদেশের মানুষও তাদের সম্মান করবে। ভেড়ামারা উপজেলা নির্বাহী অফিসার সোহেল মারুফের সভাপতিত্বে সেমিনারে বিশেষ অতিথি ছিলেন, উপজেলা পরিষদের চেয়ারম্যান হাজী আক্তারুজ্জামান মিঠু, পৌর মেয়র ও উপজেলা আওয়ামীলীগের সাধারণ সম্পাদক আলহাজ¦ শামিমুল ইসলাম ছানা, জেলা কর্মসংস্থান ও জনশক্তি’র সহকারী পরিচালক মোশফিকুর রহমান, সহকারী কমিশনার (ভূমি) তামান্না তাসনীম, উপজেলা ভাইস চেয়ারম্যান বুলবুল হাসান পিপুল, মহিলা ভাইস চেয়ারম্যান মোছাঃ ইন্দোনেশিয়া খাতুন, উপজেলা জাসদের সাধারণ সম্পাদক আনসার আলী। এছাড়াও বিভিন্ন সরকারি- বেসরকারি প্রতিষ্ঠানের কর্মকর্তা, জনপ্রতিনিধিসহ সাংবাদিকবৃন্দ উপস্থিত ছিলেন। প্রবাসী কল্যাণ ও বৈদেশিক কর্মসংস্থান মন্ত্রণালয়ের সহযোগীতায় উপজেলা প্রশাসন এ সেমিনারের আয়োজন করে।

বাংলাদেশকে কাঁপিয়ে সিরিজ হারল জিম্বাবুয়ে

ক্রীড়া প্রতিবেদক ॥ জিম্বাবুয়ের বিপক্ষে রেকর্ড ৩২২ রান করে টাইগাররা ধরেই নিয়েছিল জয় নিশ্চিত। কিন্তু বাজে বোলিংয়ের কারণে প্রত্যাশিত জয়ের ম্যাচেও শেষ দিকে পরাজয়ের দুশ্চিন্তায় পড়ে যায় বাংলাদেশ। ডেথ ওভারে ব্যাটিং তান্ডব চালিয়ে যাওয়া ডোনাল্ড ত্রিপোনো শেষ বলে ছক্কা হাঁকাতে না পারায় ৪ রানে হেরে যায় জিম্বাবুয়ে। রুদ্ধশ্বাস ম্যাচে জয় নিয়ে ২-০ ব্যবধানে ট্রফি নিশ্চিত করে স্বাগতিক বাংলাদেশ। জয়ের জন্য শেষ দিকে ৩০ বলে জিম্বাবুয়ের প্রয়োজন ছিল ৭৭ রান। রোনাল্ডো ত্রিপানো ও টিনোটেন্ডা মুতুমবাদজি রীতিমতো তান্ডব চালান। ৪৬তম ওভারে আল-আমিনের করা ওভারে দুই চার ও এক ছক্কায় ১৬ রান আদায় করে নেন তারা। এরপর শফিউলের করা ৪৭তম ওভারে দুই ছক্কা আর একটি বাউন্ডারি হাঁকিয়ে ২০ রান আদায় করে নেন ত্রিপানো। শেষ ১৮ বলে জিম্বাবুয়ের প্রয়োজন ছিল ৪১ রান। আগের ওভারে ১৬ রান খরচ করা আল-আমিন, রান খরচে সতর্ক হওয়ায় ৪৮তম ওভারে ৭ রানের বেশি নিতে পারেনি জিম্বাবুয়ে। শেষ দুই ওভারে জিম্বাবুয়ের প্রয়োজন ছিল ৩৪ রান। শফিউলের করা ৪৯তম ওভারে ১৪ রান আদায় করে নেন জিম্বাবুয়ের ব্যাটসম্যানরা। শেষ ওভারে জয়ের জন্য জিম্বাবুয়ের প্রয়োজন ছিল ২০ রান। প্রথম বলে সিঙ্গেল আর দ্বিতীয় বলে ওয়াইড দেন আল-আমিন। পরের বলে ব্যাটিং তান্ড চালানো মুতুমবাদজির উইকেট তুলে নেন। ওভারের তৃতীয় ও চতুর্থ বলে ছক্কা হাঁকিয়ে জিম্বাবুয়েকে জয়ের স্বপ্ন দেখান ত্রিপানো। শেষ দুই বলে জয়ের জন্য জিম্বাবুয়ের প্রয়োজন ছিল মাত্র ৬ রান। পঞ্চম বলে ডট দেন আল-আমিন। শেষ বলে জিম্বাবুয়ের প্রয়োজন ছিল ৬ রান। স্ট্রাইকে থাকা ত্রিপানো সিঙ্গেল রানের বেশি নিতে না পারায় তীরে গিয়ে তরী ডুবায় জিম্বাবুয়ে।

রিয়ালে ফিরতে চান রোনালদো

ক্রীড়া প্রতিবেদক ॥ সম্প্রতি সান্তিয়াগো বের্নাবেউ সফরে গিয়ে খবরের শিরোনাম হয়েছেন ইউভেন্তুস তারকা ক্রিস্তিয়ানো রোনালদো। ক্লাসিকো ম্যাচ দেখেছেন গ্যালারিতে বসে। এবার এর চেয়েও বড় খবর দিলেন রোনালদোরই কাছের এক বন্ধু, যিনি কিনা আবার সাংবাদিকও। তিনিই জানিয়েছেন রিয়াল মাদ্রিদে ফিরতে চান পর্তুগিজ ফরোয়ার্ড। লা লিগায় গত রোববার বার্সেলোনার বিপক্ষে রিয়ালের ২-০ গোলের জয়ে প্রথম গোলটি ছিল ভিনিসিউস জুনিয়রের। গ্যালারিতে রোনালদোর উপস্থিতির কথা জেনেই হয়ত গোলের পর রোনালদোর পরিচিত ভঙ্গিমায় উদযাপন করেন এই ব্রাজিলিয়ান ফরোয়ার্ড। তবে গ্যালারি নয়, বন্ধুর কথা ঠিক হলে আবারও রিয়ালের ড্রেসিংরুমে ফিরতে পারেন রোনালদো। ৩৪ বছর বয়সী এই তারকা ফরোয়ার্ডের মাদ্রিদে ফেরার ইচ্ছার কথা সম্প্রতি এক টেলিভিশন সাক্ষাৎকারে জানান তার বন্ধু এদু আগুইরে। “আমি নিশ্চিতভাবে জানি, ক্রিস্তিয়ানো রোনালদোর রিয়াল মাদ্রিদে ফেরার ইচ্ছা আছে। বের্নাবেউয়ে আসার পর সে মাদ্রিদের টান অনুভব করেছিল। সে আবেগাপ্লুত ছিল।” “বর্তমানে সে পুরোপুরি ইউভেন্তুসে মনোনিবেশ করছে। তবে ফুটবলে, শেষ বলে কিছু নেই। আমি জানি না ভবিষ্যতে কি ঘটবে, কেউই জানে না।”

 

শ্রীলঙ্কা সফরে হাত মেলাবেন না রুটরা

ক্রীড়া প্রতিবেদক ॥ ম্যাচ শেষে দুই দলের ক্রিকেটার, কোচিং স্টাফের করমর্দন করা ক্রিকেটের একটা অলিখিত প্রথা। তবে শ্রীলঙ্কা ও ইংল্যান্ডের মধ্যকার সিরিজে দেখা যাবে না এই দৃশ্য। করোনাভাইরাস ছড়িয়ে পড়ার শঙ্কায় শ্রীলঙ্কা সফরে হাত না মেলানোর সিদ্ধান্ত নিয়েছে ইংলিশরা। সম্প্রতি দক্ষিণ আফ্রিকা সফরে পাকস্থলী ও অন্ত্রের প্রদাহ এবং ফ্লু জাতীয় অসুস্থতায় ভুগেছে ইংল্যান্ড দল। শ্রীলঙ্কা সফরে হাত মেলানোর পরিবর্তে ‘ফিস্ট বাম্পস’ (হাত মুষ্টিবদ্ধ করে অন্যের মুষ্টিবদ্ধ হাত আলতো ঠুকে দেওয়া) করবেন বলে জানিয়েছেন ইংল্যান্ডের টেস্ট অধিনায়ক জো রুট। “দক্ষিণ আফ্রিকায় স্কোয়াডে অসুস্থতা ছড়িয়ে পড়ার পর ন্যূনতম যোগাযোগ রাখার গুরুত্ব সম্পর্কে আমরা ভালোমতোই অবহিত।” “আমরা নিয়মিত হাত ধুচ্ছি এবং অ্যান্টি ব্যাকটেরিয়াল টিসু দিয়ে হাতের তালু মুছে নিচ্ছি এবং সংক্রমণ থেকে মুক্ত থাকার জন্য আমাদের যে জেল দেওয়া হয়েছে, তা ব্যবহার করছি।” ‘পরিকল্পনা অনুযায়ী সফর চলবে বলে ভীষণ আশাবাদী’ রুট আরও জানান দল কর্তৃপক্ষের সঙ্গে নিয়মিত যোগাযোগ রাখছে এবং ‘কর্তৃপক্ষের পরামর্শ অনুযায়ী’ চলবে। এই সফরে দুটি টেস্ট খেলবে ইংল্যান্ড। আগামী ১৯ মার্চ গলে শুরু হবে প্রথম টেস্ট। এর আগে দুটি প্রস্তুতি ম্যাচও খেলবে ইংলিশরা। প্রাণঘাতী করোনাভাইরাসের কারণে ইতিমধ্যে বেশ কিছু ক্রীড়া ইভেন্ট স্থগিত হয়ে গেছে।

 

রেকর্ড গড়া ইনিংসে নতুন উচ্চতায় তামিম

ক্রীড়া প্রতিবেদক ॥ বিষাদের মেঘ সরিয়ে অবশেষে তামিমের ব্যাটে ফিরেছে আলোর ঝিলিক। সিলেটে জিম্বাবুয়ের বিপক্ষে দ্বিতীয় ওয়ানডেতে মঙ্গলবার উপহার দিয়েছেন অসাধারণ এক ইনিংস। সেঞ্চুরি পেরিয়ে দেড়শ ছাড়িয়ে টপকে গেছেন নিজের রেকর্ড। বাংলাদেশের হয়ে সর্বোচ্চ ইনিংসের রেকর্ড আবার লিখেছেন নতুন করে। ইনিংস শুরু করতে নেমে ৪৬তম ওভারে আউট হয়ে যখন ফিরছেন, তার নামের পাশে জ্বলজ্বল করছে ১৫৮। ১৩৭ বলের ইনিংসে ২০ চারের সঙ্গে ছক্কা ৩টি। পেছনে পড়ে গেছে ২০০৯ সালে জিম্বাবুয়ের বিপক্ষেই বুলাওয়েয়োতে করা ১৫৪। বাংলাদেশের হয়ে ওয়ানডেতে দেড়শ রানের ইনিংস খেলতে পারেননি আর কেউ। তামিমের হয়ে গেল দুটি। উইকেট ব্যাটিংয়ের জন্য দারুণ, প্রতিপক্ষের বোলিং আক্রমণ দারুণ কিছু নয়। তামিমের সেঞ্চুরি তাই খুব অপ্রত্যাশিত নয়। ইনিংসটি তার পরও বিশেষ কিছু, পারিপার্শ্বিকতার কারণে, প্রেক্ষাপটের কারণে। চাপ তাকে চেপে ধরেছিল প্রবলভাবে। সমালোচনার গ্রোত বইছিল তার চারপাশে। ফর্ম তো বটেই, ব্যাটিং নিয়ে চলছিল নিত্য কাটাছেঁড়া। ম্যাচের আগে দিন সংবাদমাধ্যমের মুখোমুখি হয়েছিলেন বাংলাদেশের ব্যাটিং কোচ নিল ম্যাকেঞ্জি। সেখানে বেশিরভাগ আলোচনা ছিল তামিমের ব্যাটিংয়ের ধরন নিয়েই। ম্যাকেঞ্জি আশ্বাস দিয়েছিলেন, বড় ইনিংস কেবল সময়ের ব্যাপার। ব্যাটিং কোচের কথার পর, খুব বেশি সময় নিলেন না তামিম! তামিমের কাছে ব্যাটিং কোচের চাওয়া ছিল, পাওয়ার প্লেতে আরও দুটি বাউন্ডারি বেশি মারা। তামিম গ্রেফ দুটি নয়, বরং বইয়ে দিলেন বাউন্ডারির গ্রোত। প্রথম ওয়ানডেতে পাওয়ার প্লের ১০ ওভারে তামিমের রান ছিল ৩১ বলে ১৫। বাউন্ডারি ১টি। এই ম্যাচে ১০ ওভার শেষে তার রান ৩৮ বলে ৪৯, বাউন্ডারি ১০টি! তার স্ট্রাইক রেট ছিল আতশ কাঁচের নিচে। ৪২ বলে ফিফটিতে মিটিয়েছেন সেই দাবি। ৭ ম্যাচ পর পেয়েছেন ফিফটির দেখা। সেঞ্চুরির অপেক্ষাটা ছিল আরও দীর্ঘ। ২০১৮ সালে ওয়েস্ট ইন্ডিজ সফরে তিন ম্যাচে দুটি সেঞ্চুরি করেছিলেন। এরপর পেরিয়ে গেছে ২৩ ম্যাচ আর ২১ মাস। তামিম আবার স্বাদ পেলেন তিনি অঙ্কের। ১০৬ বলে ছুঁয়েছেন ক্যারিয়ারের দ্বাদশ সেঞ্চুরি। বাংলাদেশের হয়ে সবচেয়ে বেশি সেঞ্চুরির রেকর্ড তার আগে থেকেই ছিল। সেটিই সমৃদ্ধ করলেন আরও। ৯ সেঞ্চুরিতে দুইয়ে আছেন সাকিব আল হাসান। ৮৪ রানের মাথায় ছুঁয়েছেন আরেকটি মাইলফলক। বাংলাদেশের প্রথম ব্যাটসম্যান হিসেবে পা রেখেছেন ৭ হাজারের ঠিকানায়। সেঞ্চুরির পর হয়ে উঠেছেন আরও দুর্দমনীয়। টিনোটেন্ডা মুটুমবোদজির টানা চার বলে মেরেছেন তিন চার ও এক ছক্কা। শন উইলিয়ামসকে বেরিয়ে এসে উড়িয়েছেন লং অন দিয়ে। দেড়শ ছুঁয়েছেন ১৩২ বলে। তখনও নেই উচ্ছ্বসিত উদযাপন। সেঞ্চুরির মতোই স্রেফ ব্যাট তুলেছেন একটু করে। পরের বলেই কার্ল মুম্বাকে ছক্কা মেরে ছাড়িয়ে গেছেন আগের রেকর্ড। ওই ওভারেই আরেকটি ছক্কার চেষ্টায় ধরা পড়েছেন লং অফ সীমানায়। রেকর্ডময় ইনিংসে আরেকটি নতুন কীর্তিও গড়েছেন। তার ২০টি চার এক ইনিংসে বাংলাদেশের রেকর্ড। ১৭ চারের আগের রেকর্ডও ছিল তার। রেকর্ডে যৌথভাবে ছিলেন শাহরিয়ার নাফীসও। এমন ইনিংসের পর আউট হয়ে ফেরার সময়ও তার চোখে-মুখে ফুটে উঠল হতাশা। ক্ষুধাটা যেন মেটেনি তখনও!

ফলন তিনগুণ বেশি

সারাবছর চাষযোগ্য পেঁয়াজ বারি-৫

কৃষি প্রতিবেদক ॥ পেঁয়াজের দাম নিয়ে সারাদেশে উদ্বিগ্ন ভোক্তাদের জন্য সুখবর নিয়ে এসেছেন বাংলাদেশ কৃষি গবেষণা ইনস্টিটিউটের মাগুরা আঞ্চলিক মসলা গবেষণা কেন্দ্রের বিজ্ঞানীরা। তারা উচ্চফলনশীল এমন জাতের পেঁয়াজ উদ্ভাবন করতে সক্ষম হয়েছেন যে, পেঁয়াজের ফলন প্রচলিত জাতের চেয়ে তিনগুণ। স্থানীয় জাতের চেয়ে এ পেঁয়াজ ১৫ থেকে ২০ দিন আগে কৃষকের ঘরে ওঠে। ফলে এই  পেঁয়াজ এবং এর বীজ চাষে কৃষকের মধ্যে ব্যাপক আগ্রহ সৃষ্টি হয়েছে। সারা বছর চাষযোগ্য এ জাতের পেঁয়াজ উৎপাদন সারাদেশে ছড়িয়ে দিতে পারলে অল্প সময়ের মধ্যেই দেশের ঘাটতি পূরণ করে রপ্তানিও সম্ভব হবে বলে মনে করছেন এ জাতটির উদ্ভাবক ও মাগুরা মসলা গবেষণা কেন্দ্রের ঊর্ধ্বতন বৈজ্ঞানিক কর্মকর্তা মো. মনিরুজ্জামান। জানা গেছে, এই গবেষণা কেন্দ্রে উদ্ভাবিত উচ্চফলনশীল বারি  পেঁয়াজ-৪ ও ৫ জাতের মধ্যে বারি পেঁয়াজ-৫ জাতটি সারাবছর চাষযোগ্য। কৃষক এ চারা লাগিয়ে প্রচলিত জাতের চেয়ে তিনগুণেরও বেশি পেঁয়াজ উৎপাদন করেছেন। অধিক উৎপাদনের ফলে লাভজনক হওয়ায় এই কেন্দ্রের সহায়তা ও পরামর্শে গত  মৌসুমে কৃষক এই জাতের পেঁয়াজ এবং এর বীজ ব্যাপকভাবে উৎপাদন করেছেন। এ জাতের উদ্ভাবক ও মাগুরা মসলা গবেষণা কেন্দ্রের ঊর্ধ্বতন বৈজ্ঞানিক কর্মকর্তা মনিরুজ্জামান বলেন, বারি পেঁয়াজ-৪ ও ৫ চাষে সাধারণ জাতের পেঁয়াজের চেয়ে তিনগুণ বেশি উৎপাদন হয়। সাধারণ জাতের পেঁয়াজ প্রতি হেক্টরে হয় ৭-৮ টন। বারি ৪ ও ৫ উৎপাদন হয় ২৫ থেকে ২৭ টন। এ পেঁয়াজের মান দেশি পেঁয়াজের মতোই, রোগবালাই হয় না। স্বাদ দেশি পেঁয়াজের মতো হওয়ায় কৃষক ভালো দামও পান। মাগুরা সদরের নালিয়ারডাঙ্গি গ্রামের কৃষক আক্কাস খান বলেন, গত মৌসুমে তিনি ৫০ শতক জমিতে বারি পেঁয়াজ-৪ জাতের লাগিয়ে বাম্পার ফলন পেয়েছেন। তা ছাড়া সাধারণ পেঁয়াজের চেয়ে ১৫ থেকে ২০ দিন আগে ওঠায় কৃষক ভালো দামও পেয়েছেন। এ বছর তিনি তিন একর জমিতে এ পেঁয়াজ চাষ করছেন। একই ধরনের মন্তব্য করেন সদরের রামনগরের মোকছেদ মন্ডল ও বকুল গাজীসহ একাধিক কৃষক। সদরের নিশ্চিন্তপুর গ্রামের কৃষক চান্দ আলী জানান, তিনি মসলা গবেষণা কেন্দ্রের সহযোগিতায় এক বিঘা জমিতে বারি পেঁয়াজ-৪ জাতের বীজ চাষ করেছিলেন। ইতোমধ্যে লক্ষাধিক টাকার বীজ বিক্রি করেছেন। নিজের প্রয়োজন মিটিয়ে আরও লক্ষাধিক টাকার বীজ বিক্রি হবে বলে তিনি আশা করছেন। স্থানীয় কৃষি কর্মকর্তা নিকুঞ্জ মন্ডল বলেন, এতদিন কৃষকরা স্থানীয় জাতের পেঁয়াজ চাষ করতেন। তবে এবার কৃষি বিভাগের পরামর্শে তারা তিনগুণ ফলনশীল বারি পেঁয়াজ-৪ ও ৫ জাতের চাষ করছেন। এ পেঁয়াজ চাষে কৃষকদের মধ্যে ব্যাপক আগ্রহ লক্ষ্য করা গেছে। গত মৌসুমে কৃষকরা এ দুটি জাতের পেঁয়াজ এবং এর বীজ উৎপাদন করে লাভবান হয়েছেন।