কুষ্টিয়া লেখক ফোরাম’র ৭৩তম সাহিত্য আসর অনুষ্ঠিত

গতকাল বিকাল পাঁচটায় কুষ্টিয়া শহরের থানাপাড়াস্থ “ফেয়ার” কার্যালয়ের সভাকক্ষে ছোট গল্পকার মোহিত চন্দ গোবিন্দ এর সভাপতিত্বে কুষ্টিয়া লেখক ফোরাম’র ৭৩-তম সাহিত্য আসর অনুষ্ঠিত হয়েছে। অনুষ্ঠানের শুরুতে “শঙ্খ দুপুর” কাব্যগ্রহন্থের লেখক কবি শাহ ইউনূস- এর অকাল প্রয়াণে ১মিনিট নিরাবতা পালন করা হয়। অনুষ্ঠানের প্রথম পর্বে বিশেষ আতিথি এবং প্রধান আলোচক অধ্যক্ষ স্বপন কুমার রায় বিষয় ভিত্তিক আলোচনা “বাংলা সাহিত্যের বিকাশের ধারা” শীর্ষক জ্ঞান গর্ভ আলোচনা করেন। দ্বিতীয় পর্বে সাহিত্য আসরে অংশগ্রহন করেন বিশিষ্ট ছড়াকার বিপুল বিশ্বাস, কবি মোছাঃ শ্যামলী ইসলাম, কবি পিন্টু আশফাক, কবি আব্দুর রাজ্জাক, কবি মোঃ আব্দুল মালেক, কবি ইশরাত জাহান ইপি, কবি কাজী সোহান শরীফ, কবি মান্নান মনি, লেখক মোহাম্মদ তাজউদ্দিন, সাহিত্যিক আজিজুর রহমান, আবৃত্তি শিল্পী মোঃ শরিফুল আলম সিদ্দিক কচি, এস.এম. সুমন, কবি আসমা আনছারী মীরু এবং লেখক ম মনিরুল ইসলাম প্রমুখ। সাহিত্য আসরে প্রধান অতিথি ছিলেন ইসলামী বিশ্ববিদ্যালয়ের এর কলা অনুষদের ডিন প্রফেসর ড. সরওয়ার মুর্শেদ, সাংস্কৃতিক ব্যক্তিত্ব খলিলুর রহমান মজু। অনুষ্ঠানটি সঞ্চালনা করেন বিশিষ্ট ছড়াকার এবং কুষ্টিয়া লেখক ফোরাম’র সাধারণ সম্পাদক আব্দুল্লাহ সাঈদ। সংবাদ বিজ্ঞপ্তি

ঝিনাইদহে পুলিশের আইন-শৃঙ্খলা বিষয়ক মতবিনিময় সভা অনুষ্ঠিত

ঝিনাইদহ প্রতিনিধি ॥ ‘সেবাই পুলিশের ধর্ম’এই শ্লোগানকে সামনে রেখে ঝিনাইদহ সদর উপজেলায় নলডাঙ্গা বাজারে ব্যবসায়ী ও জনগনের শান্তি ও নিরাপত্তা বিষয়ক এক মতবিনিময় সভা অনুষ্ঠিত হয়েছে। শনিবার সন্ধ্যায় নলডাঙ্গা বাজারের এ সভা অনুষ্ঠিত হয়। এ সময়ে উপস্থিত ছিলেন, ঝিনাইদহ সদর থানার অফিসার ইনচার্জ (ওসি)মিজানুর রহমান মিজান, নলডাঙ্গা ইউপি চেয়ারম্যান কবির হোসেন, প্রবীন আ’লীগ নেতা আবুল হোসেন, নলডাঙ্গা ক্যাম্প আইসি আব্দুল আলিম, পঙ্কজ অধিকারী ও বাজারের ব্যবসায়ীক নেতৃবৃন্দ। উক্ত সভায় ওসি বলেন, আপনার সন্তানকে আপনি পারিবারিক শিক্ষায় শিক্ষিত করবেন তাহলে সে ভাল মানুষ হবে। আমি সদর থানাতে যোগদানের পর থেকে প্রতিটি ইউনিয়নে আপনাদের কাছে যাচ্ছি আপনার সমস্যা জানার জন্য। থানা একটি সেবামূলক প্রতিষ্ঠান সেবা গ্রহন করুন কিন্তু সেটা হতে হবে আইনের মধ্য থেকে আপনি যে দলের হোন না কেন। থানাতে জিডি, মামলা কিংবা পুলিশ ক্লিয়ারেন্স নিতে কোন টাকা লাগবে না। আইন-শৃঙ্খলা পরিস্থিতি স্বাভাবিক রাখতে ওসি সকলের প্রতি আহ্বান জানান।

ঝিনাইদহে বিএনপি’র বিক্ষোভ সমাবেশ অনুষ্ঠিত

ঝিনাইদহ প্রতিনিধি ॥ বেগম খালেদা জিয়ার নিঃশর্ত মুক্তির দাবিতে ঝিনাইদহে বিক্ষোভ সমাবেশ অনুষ্ঠিত হয়েছে। শনিবার সকালে শহরের এইচ এস এস সড়কে বিএনপির কার্যালয়ে এ সমাবেশের আয়োজন করে জেলা বিএনপি। জেলা বিএনপির যুগ্ম আহ্বায়ক এ্যাড, কামাল আজাদ পান্নু’র সভাপতিত্বে অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথি হিসেবে উপস্থিত ছিলেন জেলা বিএনপির আহবায়ক এস এম মশিয়ূর রহমান। বিশেষ অতিথি ছিলেন জেলা বিএনপির যুগ্ম আহ্বায়ক আক্তারুজ্জামান, জাহিদুজ্জামান মনা, আব্দুল মজিদ বিশ্বাস। এসময় বিএনপি ও অঙ্গসংগঠনের নেতৃবৃন্দ উপস্থিত ছিলেন। এসময় বক্তারা বলেন, এই সরকার সারাদেশের মানুষের স্বাধীনতা হরন করেছে গনতন্ত্রকে হত্যা করেছে। শুধু বেগম খালেদা জিয়াকে কারাগারে রাখেনি দেশই কারগারে পরিনত করেছে। তারা বেগম খালেদা জিয়ার নিঃশর্ত মুক্তি দাবি করেন।

গাংনী পৌর এলাকায় সড়ক বাতি ও রাস্তা পাকাকরণের উদ্বোধন   

গাংনী প্রতিনিধি ॥ মেহেরপুরের গাংনী পৌর এলাকায় সড়ক বাতি স্থাপন ও সড়ক (রাস্তা) পাকাকরণ কাজের আনুষ্ঠানিকভাবে উদ্বোধন করা হয়েছে। গাংনী বাজার বাসস্ট্যান্ডে স্ট্রীট সোলার লাইট ও গাংনী পৌর এলাকার পূর্বমালসাদহ এবং গাংনী ভিটাপাড়ার রাস্তার পাকা করণসহ মোট ৫টি রাস্তার কাজের উদ্বোধন করা হয়। পৌরসভার বিভিন্ন এলাকায়  ২কোটি টাকার স্ট্রীট লাইট ও ৩ কোটি টাকার রাস্তা পাকাকরণে ব্যয় ধরা হয়েছে। গতকাল শনিবার বিকেলে আনুষ্ঠানিকভাবে উদ্বোধন করেন মেহেরপুর-২ (গাংনী) আসনের জাতীয় সংসদ সদস্য মোহাম্মদ সাহিদুজ্জামান খোকন। এসময় উপস্থিত ছিলেন গাংনী পৌরসভার মেয়র আশরাফুল ইসলাম, গাংনী উপজেলা আ.লীগের যুগ্ম সাধারণ সম্পাদক ও তেঁতুলবাড়ীয়া ইউনিয়ন পরিষদের সাবেক চেয়ারম্যান নাজমুল হুদা বিশ্বাস, সাংগঠনিক সম্পাদক ও হিজলবাড়ীয়া মাধ্যমিক বিদ্যালয়ের প্রধান শিক্ষক মনিরুজ্জামান। অন্যান্যদের মধ্যে উপস্থিত ছিলেন গাংনী পৌরসভার সহকারী প্রকৌশলী শামীম রেজা, উপ-সহকারী প্রকৌশলী জামিউল ইসলাম, প্রধান সহকারী আসলাম আলী, প্রকৌশলী হুমায়ূন কবিরসহ বিভিন্ন শ্রেণী-পেশার মানুষ।

সাফ’র মাদক বিরোধী পোষ্টার প্রদর্শণ ও পতাকা প্রচারাভিযান

মাদক নেশার ক্ষতির হাত থেকে রক্ষা পাওয়ার জন্য প্রতিটি নাগরিককে সচেতন হতে হবে। ইহা কোন ব্যক্তি, পরিবার, সমাজের এক দুশ্চিন্তার কারন নয়। দেশের সচেতন প্রতিটি নাগরিকের দায়িত্ব সর্বস্তরের মানুষকে সচেতন করা। আমরা যদি নিজ নিজ জায়গা থেকে দায়িত্ববোধকে জাগ্রত করতে না পারি, তাহলে আমরা সবাই ক্ষতিগ্রস্থের মধ্যে সামিল হবো। তাই গতকাল সকালে কুষ্টিয়ার পোড়াদহ রেলওয়ে জংশন ষ্টেশনে সাফ’র আয়োজনে মাদক বিরোধী পোষ্টার প্রদর্শণ ও পতাকা প্রচারাভিযান অনুষ্ঠিত হয়। “মাদককে রুখবো, বঙ্গবন্ধুর সোনার বাংলাদেশ গড়বো” ”মাদকমুক্ত পরিবার হোক আমাদের অঙ্গিকার” এই শ্লোগানকে সামনে রেখে সাফ‘র নির্বাহী পরিচালক ও জেলা তামাক নিয়ন্ত্রণ টাস্কফোর্স কমিটির সদস্য মীর আব্দুর রাজ্জাকের সভাপতিত্বে প্রধান অতিথির বক্তব্য রাখেন- পোড়াদহ রেলওয়ে থানার ওসি খন্দকার জসিম উদ্দিন। বিশেষ অতিথির বক্তব্য রাখেন পোড়াদহ রেলওয়ে জংশন ষ্টেশনের ভারপ্রাপ্ত ষ্টেশন মাষ্টার জয়নাল আবেদিন। ওসি বলেন আমরা নিয়মিত মাদক বিরোধী অভিযান পরিচালনা করে চলেছি। আমি নিজে একজন অধূমপায়ী। ধূমপান ও তামাকজাত দ্রব্য ব্যবহার নিয়ন্ত্রণ আইন বাস্তবায়নেও আমরা ভূমিকা রেখে চলেছি। ট্রেনে যাত্রী সাধারণ ধূমপান খুব একটা ধূমপান করে না। মাদক ব্যবসায়ী এবং বহনকারিকে আমরা নিয়মিত মামলা দিয়ে কোর্টে প্রেরণ করে চলেছি। আমরা যাত্রীসহ সাধারণ মানুষের সহযোগিতা কামনা করি।  আলোচনা শেষে বুকিং অফিসের সামনে প্লাস্টিক পোষ্টার টাঙ্গানো হয় এবং জনসাধারণের মধ্যে মাদক বিরোধী পতাকা বিলি করা হয়। সংবাদ বিজ্ঞপ্তি

পেঁয়াজ নিয়ে সুখবর

ঢাকা অফিস ॥ দিনাজপুরের হিলি স্থলবন্দরের বাংলাদেশি আমদানিকারকরা ভারত থেকে ২৫ হাজার টন পেঁয়াজ আমদানির জন্য আবেদন করেছেন। শনিবার হিলির উদ্ভিদ সঙ্গনিরোধ কেন্দ্রের কাছে ইমপোর্ট পারমিটের (আইপি) এ আবেদন করেন তারা। ভারত পেঁয়াজ রফতানিতে নিষেধাজ্ঞা প্রত্যাহারের সিদ্ধান্ত নেয়ার পরপরই এ আবেদন করেন বাংলাদেশি আমদানিকারকরা। বিষয়টি নিশ্চিত করেন হিলি স্থলবন্দরের পেঁয়াজ আমদানিকারক মাহফুজার রহমান। তিনি বলেন, সংকট ও মূল্যবৃদ্ধির কারণে গত বছরের ২৯ সেপ্টেম্বর থেকে পেঁয়াজ রফতানি বন্ধ করে দেয় ভারত। দীর্ঘ পাঁচ মাস বন্ধ থাকার পর গত ২৬ ফেব্রুয়ারি পেঁয়াজ রফতানিতে নিষেধাজ্ঞা প্রত্যাহারের ঘোষণা দেয় দেশটি। এখন দেশের বাজারে পেঁয়াজের সরবরাহ স্বাভাবিক করতে ও মূল্য নিয়ন্ত্রণে আনতে একদিন পরই বন্দর দিয়ে ভারত থেকে পেঁয়াজ আমদানির জন্য অনুমতি চেয়ে উদ্ভিদ সঙ্গনিরোধ কেন্দ্রে আবেদন করেছেন বন্দরের আমদানিকারকরা। আমি নিজেও এক হাজার টন পেঁয়াজ আমদানির জন্য আইপি চেয়ে আবেদন করেছি। এ পর্যন্ত হিলি স্থলবন্দরের আমদানিকারকরা ২৫ হাজার টনের মতো পেঁয়াজ আমদানির জন্য অনুমতি চেয়ে আবেদন করেছেন। আরও অনেক আমদানিকারক আবেদন করবেন। হিলি স্থলবন্দরের উদ্ভিদ সঙ্গনিরোধ কেন্দ্রের কোয়ারেন্টাইন প্যাথলজিস্ট মাহমুদুল হাসান মুসা বলেন, ভারত পেঁয়াজ রফতানিতে নিষেধাজ্ঞা প্রত্যাহারের পরপরই ইতোমধ্যে অনেক আমদানিকারক পেঁয়াজের ইমপোর্ট পারমিটের আবেদন করেন। তবে আবেদন অনলাইনের মাধ্যমে হওয়ায় আমরা এখন বলতে পারছি না কে কতটুকু চেয়েছেন। আইপি ইস্যু করা হবে ঢাকা থেকে। তবে এখনও আইপি ইস্যু শুরু হয়নি। আগামী দু-একদিনের মধ্যে ইস্যু শুরু হবে। পেঁয়াজ রফতানির ওপর নিষেধাজ্ঞা প্রত্যাহার করেছে ভারত সরকার। এর আগে গত বছরের সেপ্টেম্বরে পেঁয়াজ রফতানিতে ভারতের নিষেধাজ্ঞার পর দেশের পেঁয়াজ বাজারে অস্থিরতা দেখা দেয়। এতে বাংলাদেশের বাজারে সর্বোচ্চ ২৮০-৩০০ টাকায় বিক্রি হয়েছে প্রতি কেজি পেঁয়াজ। তবে নিষেধাজ্ঞা প্রত্যাহারের পর রোববার (০১ মার্চ) থেকে আমদানি হবে ভারতীয় পেঁয়াজ।

মহাখালীতে তরুণ খুন, বিচারের দাবিতে বিক্ষোভ

ঢাকা অফিস ॥  ঢাকার মহাখালীর আমতলীতে খুন হওয়া রাফি আহমেদ শিপুর হত্যাকারীর সার্বোচ শাস্তি চেয়ে রাস্তা আটকে বিক্ষোভ করেছে এলাকাবাসী। শনিবার বিকাল ৪টায় শিপুর মরদেহ নিয়ে মহাখালী শাকেরিয়া মসজিদ গলি থেকে বিক্ষোভ মিছিল বের হয়। আমতলী মোড় হয়ে তিতুমীর কলেজের সামনে এসে রাস্তা আটকে বিক্ষোভ দেখায় এলাকাবাসী। ‘অনন্তর ফাঁসি চাই’, ‘শিপু হত্যার বিচার চাই’সহ নানা শ্লোগান আসে মিছিল থেকে। শিপুর মা রিনা বেগমের অভিযোগ, ১০ লাখ টাকা চাঁদা দিতে অস্বীকৃতি জানানোয় অনন্ত নামে এক স্থানীয় যুবক তার ছেলেকে খুন করেছে। শুক্রবার রাত ৯টায় মহাখালী আমতলী একাদশ ক্লাবের সামনে শিপুকে (২২) ছুরিকাঘাতে হত্যা করা হয়। তিতুমীর কলেজ গেটের সামনে দায়িত্বরত ট্রাফিক কনস্টেবল মতিউর রহমান জানান, মিনিট বিশেকের জন্য রাস্তা আটকে বিক্ষোভ দেখায় এলাকাবাসী। পরে প্রশাসনের সহযোগিতায় মিছিল সরিয়ে নেওয়া হয়। তিনি বলেন, “যান চলাচল সাময়িক বন্ধ থাকার পর বিকাল ৪টা ৪০ মিনিটে মিছিল সরিয়ে নেওয়া হয়। এখন যান চলাচল স্বাভাবিক রয়েছে”। শিপুর মামা মানিক খান জানান, আসরের পর শাকেরিয়া মসজিদ গলিতে জানাজা শেষে স্থানীয় কবরস্থানে তার ভাগ্নেকে দাফন করা হবে। শরীয়তপুর জেলার নড়িয়া উপজেলার কাপাসপাড়া গ্রামের সবজি ব্যবসায়ী আবদুস সাত্তারের ছেলে শিপু পরিবারের সঙ্গে মহাখালীর হাজারী পাড়া এলাকায় থাকতেন। তার মামা মানিক খান জানান, নরসিংদীর একটি মাদ্রাসা থেকে পড়াশোনা শেষে হাজারি বাড়ি এলাকায় একটি মুদির দোকান চালাতেন শিপু।

ধান্দাবাজদের শুধু বহিষ্কার নয়, শাস্তিও দিতে হবে – নাসিম

ঢাকা অফিস ॥  ‘সুবিধাভোগী ও ধান্দাবাজ’ নেতা-কর্মীদের দল থেকে শুধু বহিষ্কারই নয়, আইনের আওতায় এনে তাদের কঠোর শাস্তির দাবি জানিয়েছেন আওয়ামী লীগের সভাপতিম-লীর সদস্য মোহাম্মদ নাসিম। সুবিধাবাদীদের ‘বিএনপি-জামায়াতের চেয়েও ভয়ংকর’ আখ্যায়িক করে তিনি বলেছেন, তাদের অপকর্মের কারণে আওয়ামী লীগের অর্জন ¤¬ান হয়ে যাচ্ছে। এদেরকে এখনই রুখতে না পারলে ভবিষ্যতে দলের ক্ষতি হবে; এদের আশ্রয়দাতাদেরও ছাড় না দেওয়া হবে না। যুবলীগ নেতাদের ক্যাসিনোকা-ের পর সম্প্রতি যুব মহিলা লীগের নেত্রী শামীমা নূর পাপিয়ার কেলেঙ্কারি প্রকাশের প্রেক্ষাপটে গতকাল শনিবার জাতীয় প্রেস ক্লাবে এক আলোচনা সভায় একথা বলেন নাসিম। তিনি বলেন, “আওয়ামী লীগের এত অর্জন, এতো গৌরব মাঝে-মধ্যেই ম্লান হয়ে যায় এই সমস্ত দুর্বৃত্তদের জন্য। ৃআমি মনে করি, বিএনপি জামায়াতের চেয়ে ভয়ংকর হলো এরা।“ আওয়ামী লীগের অর্জন ধরে রাখতে সুবিধাভোগীদের এখনই প্রতিহত করার আহ্বান জানান তিনি। “আওয়ামী লীগের কর্মী হিসেবে বলে রাখি, এদেরকে শুধু বহিষ্কার নয়, আইনের মাধ্যমে কঠোর শাস্তি দিতে হবে। কোনো খাতির নয়; এদের আশ্রয়দাতাকেও খাতির করা যাবে না।” ক্ষমতায় থাকার কারণে দলের ছত্রছায়ায় ‘ফ্রাঙ্কেনস্টাইন’ তৈরি হয়েছে মন্তব্য করে নাসিম বলেন, “সবসময় ক্ষমতাসীন দলের সঙ্গে কিছু সুবিধাবাদী, ধান্দাবাজ যোগদান করে। “এদের চেহারা পরিবর্তন হতে বেশিক্ষণ সময় লাগে না। এরা এমনভাবে কথা বলেন যেন আমার চেয়েও বড় আওয়ামীলীগার। এদের চেয়ে আর বড় আওয়ামীলীগার কেউ হয় না। এই সমস্ত ধান্দাবাজদের কারণেই অনেক সময় মানুষের প্রশ্নের সম্মুখীন হতে হয়।” বঙ্গবন্ধু সাংস্কৃতিক জোটের আয়োজনে চলচ্চিত্র পরিচালক আলমগীর কুমকুমের অষ্টম মৃত্যুবার্ষিকীতে আয়োজিত এ আলোচনা সভায় প্রধান অতিথি ছিলেন নাসিম। আলমগীর কুমকুমকে ‘সাহসী ও বঙ্গবন্ধুপ্রেমী’ অভিহিত করেন তিনি বলেন, “এখন তো বঙ্গবন্ধুপ্রেমীর অভাব নাই। জয়বাংলা বলার লোকের অভাব নাই। এখন কে বলে নাই, এটা খুঁজে বের করতে দুই দিন লাগবে। “এখানে যারা বসেন আছেন যারা এরশাদ বিরোধী আন্দোলন, ওয়ান ইলেভেনের সময় যে নির্যাতন ভোগ করেছিলাম আমরা, তাদের মধ্যে আলমগীর কুমকুম।” ষাটের দশকের শেষভাগে চলচ্চিত্র পরিচালক হিসেবে আত্মপ্রকাশ ঘটে আলমগীর কুমকুমের; তিনি স্মৃতিটুকু থাক, আমার জন্মভূমি, কাবিন, অমরসঙ্গীসহ বেশ কয়েকটি দর্শকপ্রিয় চলচ্চিত্র তৈরি করেছেন। চলচ্চিত্র নির্মাণের পাশাপাশি সাংস্কৃতিক আন্দোলনে সক্রিয় ছিলেন এক সময়ের ছাত্রলীগ নেতা কুমকুম। তিনি আওয়ামী লীগের কেন্দ্রীয় কমিটির সাংস্কৃতিক সম্পাদক ছিলেন, বঙ্গবন্ধু সাংস্কৃতিক জোটের প্রতিষ্ঠাতা সভাপতিও তিনি।আলোচনা সভার সভাপতিত্ব করেন বঙ্গবন্ধু সাংস্কৃতিক জোটের সহ-সভাপতি ও সংগীতশিল্পী রফিকুল আলম।বিশেষ অতিথি হিসেবে উপস্থিত ছিলেন সাবেক স্বরাষ্ট্র প্রতিমন্ত্রী শামসুল হক টুকু, আওয়ামী লীগের শ্রম বিষয়ক সম্পাদক হাবিবুর রহমান সিরাজ, আওয়ামী লীগ নেতা বলরাম পোদ্দার, বঙ্গবন্ধু সাংস্কৃতিক জোট কেন্দ্রীয় কমিটির সাধারণ সম্পাদক অরুণ সরকার রানা।

বীর মুক্তিযোদ্ধা নাদের আলীর মৃত্যুতে মুক্তিযোদ্ধা সাংগঠনিক কমান্ডের শোক

নিজ সংবাদ ॥ কুষ্টিয়া সদর উপজেলার হাটশ হরিপুর ইউনিয়নের শালদাহ গ্রামের বীর মুক্তিযোদ্ধা সেনা সৈনিক (অব:) নাদের আলীর মৃত্যুতে গভীর শোক ও শ্রদ্ধা জানিয়েছেন, বাংলাদেশ মুক্তিযোদ্ধা সংসদ কুষ্টিয়া জেলা সাংগঠনিক কমান্ড। সাংগঠনিক কমান্ডের কমান্ডার ও মুক্তিযোদ্ধা ইউনিট কমান্ডের সাবেক জেলা কমান্ডার বীর মুক্তিযোদ্ধা মানিক কুমার ঘোষ, শোক সন্তপ্ত পরিবারের প্রতি গভীর শোক ও সমবেদনা জানিয়েছেন। একই সাথে বীর মুক্তিযোদ্ধা মানিক কুমার ঘোষ বীর মুক্তিযোদ্ধা নাদের আলীর আত্মার শান্তি কামনা করেছেন।

এদিকে শনিবার বিকাল ৫টায় উপজেলা প্রশাসনের পক্ষে জেলা পুলিশের একটি দল এবং যশোর সেনা নিবাস থেকে আগত সেনা ডিভিশনের একদল চৌকশ সেনা সদস্য বীর মুক্তিযোদ্ধা মরহুম নাদেল আলীর প্রতি অন্তিম শ্রদ্ধা জানিয়ে গার্ড অব অনার প্রদান করেন। মরহুমের কফিনে ফুল দিয়ে শ্রদ্ধা নিবেদন করেন উপজেলা প্রশাসনের পক্ষে সমাজ সেবা অফিসার আশাফ-উদ-দৌলা। জেলা সাংগঠনিক কমান্ডের পক্ষে ডেপুটি কমান্ডার বীর মুক্তিযোদ্ধা মকবুল হোসেন, সদর উপজেলা কমান্ডের সাবেক সহকারী কমান্ডার বীর মুক্তিযোদ্ধা সাইদুর রহমান, উপজেলা কমান্ডের পক্ষে সাবেক উপজেলা কমান্ডার যুদ্ধাহত বীর মুক্তিযোদ্ধা মোশারফ হোসেন, হাটশ হরিপুর ইউনিয়ন কমান্ডের কমান্ডার বীর মুক্তিযোদ্ধা আনছার আলী, বীর মুক্তিযোদ্ধা আবুল কাশেম, বীর মুক্তিযোদ্ধা উম্মত আলী, বীর মুক্তিযোদ্ধা আতাউর রহমানসহ স্থানীয় গণ্যমান্য ব্যক্তিবর্গ।

পথশিশুদের জন্য “ছায়াতল বাংলাদেশ”

কুষ্টিয়ার ছেলে সোহেল রানা’র হাত ধরে শিক্ষার আলো পাচ্ছে শতাধিক পথশিশু। “ছায়াতল বাংলাদেশ” একটি স্বেচ্ছাসেবী সামাজিক সংগঠন। সমাজের সুবিধা বঞ্চিত, পথশিশুদের জীবন মান উন্নয়নে কাজ করে যাচ্ছে সংগঠনটি। সৃষ্টির প্রতি শ্রদ্ধা ও স্বাধীন স্বার্বভৌমত্বের প্রতি ভালবাসা’র উপর ভিত্তি করে নামকরণ করা হয়েছে “ছায়াতল বাংলাদেশ”। ২০১৬ সালে মার্চ মাসের ১৬ তারিখ বিকেলে বসেছিলেন ঢাকা’র শ্যামলী শিশু পার্কের এক কোণে। রাকিব নামের এক টোকাই ছেলে  এসে মুড়ি খাওয়ার জন্য তার কাছে কিছু টাকা চেয়ে বসে। তিনি বললেন, তুমি তোমার নাম লিখতে পারলে মুড়ি খাওয়াবো। অক্ষর জ্ঞানহীন রাকিব অনেকক্ষণ চেষ্টা করে তার নাম লেখার আকৃতি তৈরী করতে সক্ষম হয়।সোহেল রানা তাকে মুড়ি খাওয়ায়। ছেলেটা বললেন ভাইয়া কাল কি আবার নাম লেখা শিখতে আসবো? সোহেল রানা পরেরদিন অপেক্ষা করতে থাকে রাকিবের জন্য, কিছুক্ষণ অপেক্ষার পরে দেখতে পেলো রাকিবতো আসছেই সাথে আরো দুজন বাচ্চাও আছে।তারাও নাম লেখা শিখতে চায়। সেখান  থেকেই শুরু ছায়াতল বাংলাদেশ,  একে একে বাড়তে থাকে অক্ষর জ্ঞান শেখা শিশুদের সংখ্যা। শ্যামলি শিশু পার্কের এক কোনে চলতে থাকে শিক্ষা কার্যক্রম। পাশাপাশি কুষ্টিয়াসহ দেশের বিভিন্ন স্থানে গড়ে তোলেন এই ছায়াতলের শাখা। সঙ্গী হিসেবে যুক্ত হয় মাসুদ রনি, সাইফুল ইসলাম খান, আসিকুজ্জামান সজল সহ অনেকেই। বর্তমানে সংগঠনটি সুবিধা বঞ্চিত শিশুদের তিনটা স্কুল পরিচালনা করছে। বছরের শুরুতেই শিশুদের স্কুল ড্রেস,স্কুল কেডস, স্কুল ব্যাগ এবং শিক্ষা সামগ্রীসহ শিশুদের  প্রয়োজনীয় যাবতীয় কিছু  বিতরণ করে থাকে। শীত মৌসুমে শীতের পোশাক, কম্বল বিতরণ এবং উৎসব অনুষ্ঠানে নতুন পোশাক বিতরণ করা হয়। এসকল শিশুদের পড়াশুনার পাশাপাশি ধর্ম শিক্ষা ও সাংস্কৃতি চর্চা করানো হয়। মাসে একবার ফ্রী মেডিকেল ক্যাম্পের মাধ্যমে শিশুদের ও তাদের পরিবারের সদস্যদের প্রাথমিক চিকিৎসা প্রদান করা হয়।বিভিন্ন কমিউনিটি সেন্টারের  বেঁচে যাওয়া ভালো খাবার সংগ্রহ করে বাচ্চাদের পুষ্টির ব্যবস্থা করা হয়। বাচ্চাদের মেধার বিকাশ প্রসারের জন্য বছরের বিভিন্ন সময় শিক্ষা সফরের আয়োজন করা এবং জাতীয় দিবসগুলো উদযাপন করতে ভিন্ন ভিন্ন আয়োজন সংগঠনটি করে থাকে। যোগাযোগ করা হলে সংগঠনের প্রতিষ্ঠাতা সদস্য মাসুদ রনি জানান, সমাজের সকল শ্রেণী-পেশার মানুষের সহযোগিতা ও পরামর্শ পাইলে এসকল সুবিধা বঞ্চিত শিশুরা নিশ্চয়ই মুলধারায় ফিরে আসবে, সমাজে অপকর্ম হ্রাস পাবে এবং শিশুরা একসময় দেশের জনসম্পদে রূপান্তর হবে। সংবাদ বিজ্ঞপ্তি

কালুখালীতে অন্তু সাকিব ক্রিকেট টুর্নামেন্টের ফাইনাল খেলা অনুষ্ঠিত

ফজলুল হক ॥ রাজবাড়ী জেলাধীন কালুখালীতে অন্তু সাকিব স্মৃতি ক্রিকেট টুর্নামেন্ট-২০২০ এর ফাইনাল খেলা অনুষ্ঠিত হয়েছে। শুক্রবার সকাল ১০ টায় রতনদিয়া রজনীকান্ত সরকারী মডেল উচ্চ বিদ্যালয় মাঠ প্রাঙ্গণে রুপসা স্পোটিং ক্লাব বনাম মাধবপুর ক্রিকেট স্পোটিং ক্লাব এর মধ্যকার খেলা আনুষ্ঠানিকভাবে শুভ উদ্বোধণ করেন উপজেলা পরিষদ চেয়ারম্যান আলিউজ্জামান চৌধুরী (টিটো) এসময় অন্যান্যরা উপস্থিত ছিলেন। খেলায় ৫৬ রানে রূপসা স্পোটিং ক্লাবকে পরাজিত করে মাধবপুর স্পোটিং ক্লাব চ্যাম্পিয়নশীপ অর্জন করে। বিকেলে পুরস্কার বিতরণী সভায় অতিথি হিসেবে উপস্থিত ছিলেন রতনদিয়া ইউপি চেয়ারম্যান মেহেদী হাচিনা পারভীন নিলুফা,  মুর্তজা হামিম নিপুণ মাষ্টার, সিনিয়র ফুটবলার বিল্লাল হোসেন, ইউপি সদস্য সঞ্জয় হালদার, যুবলীগ নেতা মাহমুদ হাসান সুমন, শেখ রাসেল ক্রীড়া সংঘের আহবায়ক এনামুল হক সেতু, অন্তু সাকিব স্পোটিং ক্লাবের আহবায়ক চিরঞ্জিত হালদার এছাড়াও খেলা পরিচালনাকারী আম্পায়ার সরুপ বিশ্বাস ও সজল দেবনাথ সহ অন্যান্যরা উপস্থিত ছিলেন। পুরস্কার বিতরনীতে অতিথিবৃন্দ প্রথমে চ্যাম্পিয়নশীপ ট্রফি মাধবপুর স্পোটিং ক্লাবের অধিনায়ক মোঃ রুমানের হাতে এবং রানার্সআপ ট্রফি রূপসা স্পোটিং ক্লাবের অধিনায়ক মোঃ মিরাজ এর হাতে তুলে দেন।

কুমারখালীতে আনোয়ারা বেগম শিক্ষার্থী কল্যাণ ট্রাস্টের বৃত্তি ও সনদপত্র প্রদান

কুমারখালী প্রতিনিধি ॥ কুষ্টিয়ার কুমারখালী উপজেলার পান্টিতে আনোয়ারা বেগম শিক্ষার্থী কল্যাণ ট্রাস্টের বৃত্তি ও সনদপত্র প্রদান করা হয়েছে। গতকাল শনিবার পান্টি মাধ্যমিক বিদ্যালয়ের হল রুমে আনুষ্ঠানিকভাবে ৫ম বারের মত এই বৃত্তি ও সনদপত্র প্রদান করা হয় । এ উপলক্ষে আয়োজিত অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথি ছিলেন ট্রাস্টের চেয়ারম্যান সাবেক জেলা পরিষদ প্রশাসক বীরমুক্তিযোদ্ধা ও বিশিষ্ট শিক্ষানুরাগী জাহিদ হোসেন জাফর। আনোয়ারা বেগম শিক্ষার্থী কল্যাণ ট্রাস্টের পরিচালক এ বি এম বদিউজ্জামানের সভাপতিত্বে অনুষ্ঠানে বিশেষ অতিথি ছিলেন ট্রাস্টের প্রধান উপদেষ্টা যুদ্ধাহত বীরমুক্তিযোদ্ধ, শিক্ষানুরাগী জয়নাল আবেদীন, পান্টি মাধ্যমিক বিদ্যালয়ের প্রধান শিক্ষক শেখ ওবাইদুল হক দিলু ও বালিকা বিদ্যালয়ের প্রধান শিক্ষক দীনবন্ধু কুমার বিশ^াস। আনোয়ারা বেগম শিক্ষার্থী কল্যাণ ট্রাস্টের সহকারী পরিচালক আনিসুর রহমান মিয়ার পরিচালনায় অন্যান্যের মধ্যে বক্তব্য রাখেন ইউপি চেয়ারম্যান রাশিদুজ্জামান তুষার, শিক্ষক আবু নইম মিয়া, আঃ হালিম, সেকেন্দার আলী, হাবিবুর রহমান প্রমূখ। বৃত্তিপ্রাপ্ত শিক্ষার্থীদের মধ্যে বক্তব্য রাখে জোহানা রাহী। প্রধান অতিথির বক্তব্যে ট্রাস্টের চেয়ারম্যান জাহিদ হোসেন জাফর বলেন- গ্রামীণ শিক্ষা ব্যবস্থার উন্নয়ন ও মেধা তালিকায় তারা যেন প্রতিযোগিতায় টিকে থাকতে পারে এমন উদ্যোগকে সামনে রেখে এই বৃত্তির ব্যবস্থা করা হয়েছে। তিনি আরো বলেন, শিক্ষাই জাতির মেরুদন্ড, আমি একজন সাবেক শিক্ষক হিসাবে-শিক্ষিত জাতি গঠনে এগিয়ে এসে যদি ছাত্র-ছাত্রীকে প্রকৃত মেধায় গড়ে তুলতে পারি তাহলেই এলাকার উন্নয়ন সম্ভব হবে। তিনি বলেন- ৫ম বারের মতো এই শিক্ষাবৃত্তি অনুষ্ঠানের কার্যক্রম পরিচালনা করতে পেরে আমি এলাকার মানুষ শিক্ষক শিক্ষার্থীদের কাছে কৃতজ্ঞতা প্রকাশ করছি।

বিশেষ অতিথির বক্তব্যে  ট্রাস্টের শিক্ষাবৃত্তির প্রধান উপদেষ্টা মোঃ জয়নাল আবেদীন বলেন-  আমার মরহুম মায়ের নামে প্রতিষ্ঠিত এই প্রকল্পটি ব্যাপক আলোড়ন সৃষ্টি করেছে বলেই আজকের শিক্ষার্থীদের জোয়ার দেখছি। তিনি বলেন, অভিভাবকরা তাদের সন্তানকে সুশিক্ষায় শিক্ষিত করতে এবং প্রতিযোগিতামূলক শিক্ষায় অংশগ্রহণ করাতে যে আগ্রহ দেখাচ্ছেন সেটা দেখে আমি মুগ্ধ, এজন্য আগামীতে আরো বেশী অর্থ বরাদ্ধ ও বৃত্তির সংখ্যা বৃদ্ধি করা হবে। বৃত্তিপ্রাপ্ত শিক্ষার্থী সুমাইয়া বুশরা শিমু জানায়, আমি দ্বিতীয় বারের মত এবার সপ্তম শ্রেণি থেকে বৃত্তি পেয়েছি। আগামীতে এই কার্য্যক্রম আরো ব্যাপকভাবে অনুষ্ঠিত হোক এটাই প্রত্যাশা। অভিভাবক হাবিবুর রহমান জানান, এই বৃত্তি প্রকল্প শিক্ষার্থীদের মেধা বিকাশে অনন্য ভূমিকা রাখছে। তিনি আরো জানান, পান্টি এলাকায় যে উদ্যোগটি গ্রহণ করা হয়েছে, এরকম প্রতিটা ইউনিয়ন পর্যায়ে আয়োজন করলে শিক্ষার্থীদের আরো বেশি মেধার উন্নয়ন হবে । অনুষ্ঠানের দ্বিতীয় পর্বে অতিথিবৃন্দ বৃত্তিপ্রাপ্ত শিক্ষার্থীদের হাতে নগদ অর্থ ও সনদপত্র তুলে দেন।  আনোয়ারা বেগম শিক্ষার্থী কল্যাণ ট্রাস্টের বৃত্তি পরীক্ষা জেলায় ব্যাপক আলোড়ন সৃষ্টি করেছে। এবারের ২০১৯ সালের পরীক্ষায় ৬০০ জন শিক্ষার্থী অংশগ্রহণ করছিল। এদের মধ্যে থেকে ট্যালেন্ট ও সাধারণ গ্রেডে ৫৯জন শিক্ষার্থীকে বৃত্তি প্রদান করা হয়। বৃত্তির মধ্যে রয়েছে নগদ টাকা ও সনদপত্র। এছাড়াও প্রতিজন বৃত্তিপ্রাপ্ত এবং সাথে আগত অভিভাবককে দুপুরের খাবার প্রদান করা হয়।

কুষ্টিয়ায় ডায়াবেটিক সচেতনতা দিবসের সভায় ডাঃ এসএম মুসতানজিদ

পরিবারে কারও ডায়াবেটিস হলে অন্য সদস্যদেরও তার সহায়তায় এগিয়ে আসতে হবে

ডায়াবেটিস রোগ সম্পর্কে জনগণকে সচেতন করে তোলার লক্ষ্যে কুষ্টিয়ায় ‘ডায়াবেটিস সচেতনতা দিবস’ পালন করা হয়েছে। ডায়াবেটিক সচেতনতা দিবস উপলক্ষে গতকাল শনিবার সকাল সাড়ে ৯টায় মুজিবুর রহমান মেমোরিয়াল ডায়াবেটিক হাসপাতালের এক আলোচনা সভা অনুষ্ঠিত হয়। সমিতির সহ-সভাপতি হাফিজুল রহমান কাল্টুর সভাপতিত্বে সভায় প্রধান অতিথির বক্তব্য রাখেন কুষ্টিয়া মেডিকেল কলেজের সাবেক অধ্যক্ষ ডাঃ এসএম মুসতানজিদ। প্রধান বক্তা ছিলেন কুষ্টিয়া মেডিকেল কলেজ হাসপাতালের মেডিসিন বিভাগের সহকারী অধ্যাপক ডাঃ আক্রামুজ্জামান মিন্টু। অনুুষ্ঠানের স্বাগত বক্তব্য রাখেন কুষ্টিয়া ডায়াবেটিক সমিতির যুগ্ম সাধারণ সম্পাদক মোশফেকুর রহমান টর্লিন। সভায় অন্যান্যের মধ্যে বক্তব্য রাখেন মুজিবুর রহমান মেমোরিয়াল ডায়াবেটিক হাসপাতালের চিকিৎসক ডাঃ লাল মহম্মদ, বঙ্গবন্ধু পরিষদ কুষ্টিয়া জেলা শাখার সহ-সভাপতি এ্যাড. নজরুল ইসলাম সরকার প্রমুখ। আলোচনা সভায় প্রধান অতিথি বলেন- ডায়াবেটিস নিয়ন্ত্রণে সচেতনতা জরুরি, সচেতন হতে হবে সবাইকে। এর বিকল্প নেই। পরিবারে কারও ডায়াবেটিস হলে অন্য সদস্যদেরও তার সহায়তায় এগিয়ে আসতে হবে। তিনি বলেন, সুস্থ জীবনযাপনে ডায়াবেটিস প্রতিরোধ ও নিয়ন্ত্রণে রাখতেই হবে। সবাইকে মনে রাখতে হবে, শরীরের বিভিন্ন রোগ নির্মূলে ডায়াবেটিস নিয়ন্ত্রণ ও প্রতিরোধে সচেতনতা বড় সহায়কের ভূমিকা রাখতে পারে। সংবাদ বিজ্ঞপ্তি

খালেদা জিয়ার মুক্তি দাবীতে কুষ্টিয়ায় বিএনপির বিক্ষোভ সমাবেশ

বিএনপির চেয়ারপার্সন বেগম খালেদা জিয়ার মুক্তির দাবিতে কুষ্টিয়ায় বিক্ষোভ সমাবেশ করেছে বিএনপি। কেন্দ্র ষোষিত কর্মসূচীর অংশ হিসেবে শনিবার বেলা ১১ টায় জেলা বিএনপি কার্যালয়ে এ বিক্ষোভ সমাবেশ অনুষ্ঠিত হয়। সমাবেশে বিএনপি চেয়ারপার্সনের উপদেষ্টা জেলা বিএনপির সভাপতি সাবেক এমপি বীর মুক্তিযোদ্ধা সৈয়দ মেহেদী আহমেদ রুমীর সভাপতিত্বে বক্তব্য রাখেন বিএনপির জাতীয় নির্বাহী কমিটির স্থানীয় সরকার বিষয়ক সম্পাদক জেলা বিএনপির সাধারণ সম্পাদক সাবেক এমপি বীর মুক্তিযোদ্ধা অধ্যক্ষ সোহরাব উদ্দিন। মেহেদী রুমী তার বক্তব্যে বলেন, ‘সরকার খালেদা জিয়ার সঙ্গে প্রতিহিংসামূলক আচরণ করছে। বারবার খালেদা জিয়ার জামিন আবেদন খারিজ আদেশের মধ্যদিয়ে সরকারের  সেই তারই বহিঃপ্রকাশ ঘটল।’ তিনি বলেন, অন্ধ প্রতিহিংসার বশে বেগম খালেদা জিয়াকে তিলে তিলে মৃত্যুর দিকে ঠেলে দিতেই তার জামিন এবং সুচিকিৎসা প্রদানে প্রতিবন্ধকতা সৃষ্টি করছে এই সরকার। তিনি বলেন,  দেশনেত্রী খালেদা জিয়াকে বিনা চিকিৎসায় কারাগারে সুপরিকল্পিতভাবে হত্যার চক্রান্ত চলছে। তাকে তিলে তিলে মৃত্যুর দিকে ঠেলে দিচ্ছে। তিনি বলেন,  গণতন্ত্র পুনরুদ্ধারে ও বিএনপির চলমান আন্দোলন চলবে। অধ্যক্ষ সোহরাব উদ্দিন বলেন, বিনা চিকিৎসায় বেগম জিয়ার অবস্থা শোচনীয় পর্যায়ে নেয়ার চক্রান্ত চলছে। দানব সরকারের হাত থেকে দেশকে রক্ষা করতে হবে। আর এজন্য প্রয়োজন গণতন্ত্র। গণতন্ত্রের মাতা খালেদা জিয়াকে মুক্তি করা ছাড়া গণতন্ত্র আসবে না। রাজপথের আন্দোলনের মাধ্যমে এই সরকারকে হটাতে হবে। খালেদা জিয়াকে মুক্ত করতে হবে। জেলা বিএনপির বিএনপির সাংগঠনিক সম্পাদক এ্যাড.শামীম উল হাসান অপুর পরিচালনায় সমাবেশে আরো বক্তব্য রাখেন  জেলা বিএনপির সহ-সভাপতি বশিরুল আলম চাদ, মিরপুর উপজেলা বিএনপির সভাপতি আব্দুল হক, কুমারখালী থানা বিএনপির যুগ্ম সম্পাদক হাফিজুল ইসলাম, জেলা বিএনপির যুব বিষয়ক সম্পাদক মেজবাউর রহমান পিন্টু, ভেড়ামারা উপজেলা বিএনপির নেতা হাজী মনিরুল ইসলাম, জেলা যুবদলের সভাপতি আল-আমিন কানাই, সাধারণ সম্পাদক কামাল উদ্দিন, জেলা যুবদলের সহ-সভাপতি এ্যাড.শাতিল মাহমুদ, সাংগঠনিক সম্পাদক জাহিদুল ইসলাম বিপ্লব, জেলা কৃষকদলের সাধারন সম্পাদক মোকারম হোসেন মোকা, জেলা ছাত্রদলের সাংগঠনিক সম্পাদক রোকনুজ্জামান রাসেল প্রমুখ। নেতৃবৃন্দ অবিলম্বে বেগম খালেদা জিয়ার নি:স্বার্থ মুক্তি দাবী জানান। সংবাদ বিজ্ঞপ্তি

 

পাপিয়ার গডমাদারদেরও ধরা হবে – স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী

ঢাকা অফিস ॥  স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী আসাদুজ্জামান খান কামাল বলেছেন, যুব মহিলা লীগের বহিষ্কৃত নেত্রী শামীমা নূর পাপিয়ার অনৈতিক কর্মকা-ে বিব্রত আওয়ামী লীগ। তবে প্রধানমন্ত্রীর নির্দেশে দলের আগাছা পরিষ্কার অভিযান শুরু হয়েছে। কেউ এর বাইরে যেতে পারবে না। তিনি বলেন, শুধু পাপিয়া নয়; পাপিয়ার সঙ্গে যারা অপরাধ করেছেন, তাদের বিষয়ে তদন্ত চলছে। পাপিয়ার গডফাদার-গডমাদারকেও আইনের আওতায় আনা হবে। তারাও ধরা পড়বে। কোনোভাবেই এসব কর্মকান্ড করতে দেয়া হবে না। শনিবার দুপুরে চুয়াডাঙ্গার দামুড়হুদা উপজেলার দর্শনায় নতুন থানা উদ্বোধনের পর সাংবাদিকদের এসব কথা বলেন তিনি। মুজিববর্ষে ভারতের প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদিকে আমন্ত্রণ নিয়ে বাম সংগঠনগুলোর আপত্তি এবং হেফাজতের প্রতিহতের ঘোষণার বিষয়ে স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী বলেন, ‘অসাম্প্রদায়িক চেতনার দেশে সাম্প্রদায়িকতার কোনও স্থান নেই। বিষয়টি নিয়ে ইতোমধ্যে আমাদের দলের সাধারণ সম্পাদক দলের অবস্থান পরিষ্কার করে দিয়েছেন।সাংবাদিক দম্পতি সাগর-রুনি হত্যা মামলার তদন্ত সম্পর্কে স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী বলেন, দীর্ঘ ২৫ বছর পর চিত্রনায়ক সালমান শাহের মৃত্যুর রহস্য উন্মোচিত হয়েছে। এক্ষেত্রে পিবিআই সফলতার পরিচয় দিয়েছে। খুব দ্রুতই সাগর-রুনি হত্যাকান্ডের জট খুলে রহস্য উদঘাটন করা হবে।তিনি বলেন, সীমান্তবর্তী হওয়ায় চুয়াডাঙ্গা খুবই গুরুত্বপূর্ণ জেলা। দর্শনা অন্যতম একটি স্থান। দর্শনাবাসীর প্রাণের দাবি অনুযায়ী দর্শনাকে থানায় রূপান্তর করা হলো। খুব শিগগিরই এটাকে উপজেলায় পরিণত করা হবে। থানা উদ্বোধনের পর চুয়াডাঙ্গা জেলা পুলিশ আয়োজিত জঙ্গি, সন্ত্রাস ও মাদকবিরোধী এক জনসভায় যোগ দেন স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী। সেখানে মন্ত্রীর হাতে ফুল দিয়ে জেলা পুলিশের তালিকাভুক্ত শতাধিক মাদক ব্যবসায়ী আত্মসমপর্ণ করেন। পুলিশ সুপার জাহিদুল ইসলামের সভাপতিত্বে সভায় উপস্থিত ছিলেন চুয়াডাঙ্গা জেলা আওয়ামী লীগের সভাপতি ও চুয়াডাঙ্গা-১ আসনের সংসদ সদস্য সোলাইমান হক জোয়ার্দ্দার ছেলুন, চুয়াডাঙ্গা-২ আসনের সংসদ সদস্য হাজী আলী আজগর টগর, খুলনা রেঞ্জের ডিআইজি ড. খ. মহিদ উদ্দিন, দর্শনা পৌর মেয়র মতিয়ার রহমান ও চুয়াডাঙ্গা পৌর মেয়র ওবাইদুর রহমান চৌধুরী প্রমুখ।

করোনাভাইরাস আতঙ্কে বিশ্বজুড়ে শেয়ার বাজারে ধস

ঢাকা অফিস ॥  করোনাভাইরাস সংক্রমণের প্রভাব এবার পড়েছে বিশ্ব বাজারেও। ২০০৮ সালের বিশ্বমন্দার পর বিশ্বজুড়ে শেয়ার বাজারে সবচেয়ে খারাপ অবস্থা দেখা দিয়েছে এ সপ্তাহে। করোনাভাইরাস আতঙ্কে বিনিয়োগকারিরা কোনও ঝুঁকি নিতে চাইছেন না। উপরন্তু বিনিয়োগ করা টাকাও তুলে নিতে চাইছেন। করোনাভাইরাস মহামারীর প্রকোপ নিয়ে বিশ্ব অর্থনৈতিক বৃদ্ধি আশাতীত কমিয়ে দিতে পারে বলে উদ্বিগ্ন বিনিয়োগকারীরা। তাই বিভিন্ন প্রকল্প থেকে হাত গুটিয়ে নিচ্ছেন তারা। যার ফলেই বাজারে এমন ধাক্কা। শুক্রবার সকালে ইউরোপের বাজারে বড় ধরনের পতন ঘটেছে। লন্ডনের ফিন্যান্সিয়াল টাইমস স্টক এক্সচেঞ্জ (এফটিএসসি) ১০০ সূচক ৩ শতাংশেরও বেশি পড়ে গেছে। এশিয়ার শেয়ার বাজারগুলোতে দেখা গেছে আরো বড় পতন। চীন, জাপান, দক্ষিণ কোরিয়ার শেয়ার মার্কেট মারাত্মক ক্ষতির মুখে পড়েছে। এবছর জাপানে অলিম্পিক হওয়ার কথা থাকলেও করোনাভাইরাস আতঙ্কে তা বাতিল হওয়ার খবর ছড়ায়। এতেই জাপানের সূচক নিক্কেই এদিন প্রায় ৩.৩ শতাংশ পড়ে গেছে। গত সোমাবারও দক্ষিণ কোরিয়া থেকে ইতালি সবখানেই শেয়ার বাজারে ধস নেমেছিল। ওইদিন ভারতের মুম্বাই শেয়ার বাজারের দুই প্রধান সূচক সেনসেক্স ও নিফটিও যথাক্রমে ১.৯৬ শতাংশ ও ২.০৮ শতাংশ পড়ে যায়। ইউরোপের দেশগুলোতেও শেয়ার বাজারেও পতন এদিন ছিল অনেক বেশি। ওদিকে, বৃহস্পতিবার যুক্তরাষ্ট্রের ডাও জোনস এর সূচক একদিনে রেকর্ড পরিমাণ পড়ে গেছে। করোনাভাইরাসের সংক্রমণের কারণে বিশ্বব্যাপী পর্যটন, বিমান পরিবহণ এবং সামগ্রিকভাবে ব্যবসা ক্ষতিগ্রস্ত হওয়ায় সবদেশের শেয়ার বাজারেই বিক্রির ঢল দেখা গেছে। চীনের বাইরে গোটা বিশ্বে এ সংক্রমণ যেভাবে ছড়াতে শুরু করেছে তাতে আগামী দিনে শেয়ার বাজার আরও পড়তে পারে বলে মনে করছেন বিশেষজ্ঞরা। বিশ্বের এক একটি দেশে করোনাভাইরাস সংক্রমণের খবর বিশেষ করে ইতালিতে আক্রান্তের সংখ্যা কয়েকদিনে কয়েকগুণ বেড়ে যাওয়ায় অর্থনীতিতে এর প্রভাব আগে যতটা অনুমান করা হয়েছিল তার চেয়েও বেশি হওয়ার আশঙ্কা দেখা দিয়েছে।চীনের এক অর্থনীতিবিদ বলেছেন, “বাজার অনেকটাই ইতিবাচক ছিল। কিন্তু এখন অনেক বেশি নেতিবাচক হয়ে গেছে।”স্ট্যান্ডার্ড চার্টার্ড ব্যাংকের এক পরিকল্পনাবিদ বলেন, “আগে চীনে সংক্রমণ কমে আসায় বাজারে স্বস্তি ফিরেছিল। কিন্তু চীনের বাইরে দক্ষিণ কোরিয়া, ইটালি, জাপানসহ নানা দেশে লাফিয়ে লাফিয়ে ভাইরাস আক্রান্তের সংখ্যা বাড়তে থাকায় আতঙ্ক, উদ্বেগ আবার ফিরে এসেছে।”শুক্রবার ইউরোপে সব প্রধান প্রধান শেয়ারের সূচকে বড় ধরনের পতন ঘটেছে। জার্মানি এবং ফ্রান্সের শেয়ারও যথাক্রমে ৩ দশমিক ৬ এবং ৩ দশমিক এক শতাংশ পতন হয়েছে।অস্ট্রেলিয়ার প্রধান শেয়ার সূচক এএসএক্স২০০ শুক্রবার পড়ে গেছে ৩ দশমিক ৩ শতাংশ। ২০০৮ সালের মন্দার পর এটিই এ শেয়ারে সবচেয়ে বড় ধস। চীনের সাংহাই কমপোজিট সূচকও এদিন ৩ দশমিক ৭ শতাংশ পড়ে গেছে।ওদিকে, আনন্দবাজার পত্রিকা জানায়, শুক্রবার সকাল থেকেই নিম্নমুখী ভারতের বম্বে স্টক এক্সচেঞ্জ। শুক্রবার বাজার খোলার সঙ্গে সঙ্গেই সেনসেক্স ১১৫৫ পয়েন্টের বেশি পড়ে পৌঁছে যায় ৩৮ হাজারের ঘরে। প্রায় সাড়ে তিনশো পয়েন্ট পড়ে নিফটি পড়ে নেমে যায় ১১ হাজারের ঘরে।সব থেকে বেশি ধাক্কা খেয়েছে, ব্যাঙ্কিং, অটোমোবাইল, ধাতু, খনিজ তেল ও গ্যাস সেক্টরের শেয়ার। বেশি ক্ষতি হয়েছে টাটা মোটরস, হিন্দালকো, টাটা স্টিল, ভেদান্ত, টেক মহিন্দ্রা, জেএসডব্লু এবং বাজাজ ফিনান্সের মতো শেয়ারে। এ শেয়ারগুলোতে ৩.৮৪ শতাংশ থেকে ৬.২৩ শতাংশ পর্যন্ত পতন হয়েছে। চীনে করোনাভাইরাসের প্রাদুর্ভাব ঘটার পর থেকেই এশিয়ার শেয়ার বাজারগুলোতে এর নেতিবাচক প্রভাব পড়ছে।

মালয়েশিয়ার নতুন প্রধানমন্ত্রী মুহিউদ্দিন ইয়াসিন

ঢাকা অফিস ॥  এক সপ্তাহ ধরে চলা টালমাটাল রাজনৈতিক পরিস্থিতি পর মালয়েশিয়ার রাজা সাবেক স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী মুহিউদ্দিন ইয়াসিনকে নতুন প্রধানমন্ত্রী হিসেবে নিয়োগ দিয়েছেন। গতকাল শনিবার রাজার নেওয়া হতবাক করা এ সিদ্ধান্ত পুরনো রাজনৈতিক প্রতিদ্বন্দ্বী মাহাথির মোহাম্মদ ও আনোয়ার ইব্রাহিমকে ক্ষমতার দৌঁড় থেকে ছিটকে দিয়েছে বলে বার্তা সংস্থা রয়টার্স জানিয়েছে। বিশ্বের সবচেয়ে বয়োবৃদ্ধ সরকার প্রধান ৯৪ বছর বয়সী মাহাথির মালয়েশিয়ার প্রধানমন্ত্রীর পদ থেকে পদত্যাগ করার পাঁচ দিন পর নতুন প্রধানমন্ত্রী নিয়োগের এ সিদ্ধান্তটি এলো। মাহাথির ও আনোয়ারের নির্বাচনী জোট ২০১৮ সালের জাতীয় নির্বাচনে জয়ী হয়ে সাবেক ক্ষমতাসীন জোটকে ক্ষমতা থেকে হটিয়ে দিয়েছিল, কিন্তু পদত্যাগ করার পর আনোয়ারের সঙ্গে জোট ভেঙে দিয়েছেন মাহাথির। শনিবার মাহাথির ও আনোয়ার ফের জোটবদ্ধ হওয়ার ঘোষণা দেওয়ার পরও এক বিবৃতিতে রাজদরবার জানায়, সম্ভবত মুহিউদ্দিন ইয়াসিনের প্রতি পার্লামেন্টের সংখ্যাগরিষ্ঠের সমর্থন আছে এমন বিবেচনার ওপর ভিত্তি করে রাজা নিজের সিদ্ধান্ত নিয়েছেন। “মহামান্য (রাজা) আদেশ জারি করে বলেছেন, একজন প্রধানমন্ত্রীর নিয়োগ প্রক্রিয়ায় দেরি করা যায় না। সবার জন্য এটিই সবচেয়ে ভালো সিদ্ধান্ত,” ওই বিবৃতিতে এমনটি বলা হয়েছে বলে জানিয়েছে রয়টার্স। এরপর নিজ বাড়িতে এক সংবাদ সম্মেলনে মুহিউদ্দিন বলেন, “আমি শুধু সব মালয়েশীয়কে জাতীয় রাজদরবার থেকে ঘোষিত সিদ্ধান্ত মেনে নিতে বলবো।” নতুন প্রধানমন্ত্রী নিয়োগের পর মাহাথির অথবা আনোয়ার তাৎক্ষণিকভাবে কোনো মন্তব্য করেননি। ৭২ বছর বয়সী মুহিউদ্দিনের প্রতি সাবেক ক্ষমতাসীন দল ইউনাইটেড মালয় ন্যাশনাল অর্গানাইজেশনের (ইউএমএনও) সমর্থন আছে। তার প্রতি ইসলামপন্থি দল পিএএসেরও সমর্থন আছে।

উন্নত জাতি গঠনে শিক্ষার সাথে দীক্ষা, বিদ্যার সাথে বিনয় প্রয়োজন – তথ্যমন্ত্রী

ঢাকা অফিস ॥  তথ্যমন্ত্রী ও আওয়ামী লীগের যুগ্ম-সাধারণ সম্পাদক ড. হাছান মাহমুদ বলেছেন,শিক্ষার সাথে দীক্ষা ও বিদ্যার সাথে বিনয় যুক্ত করেই নতুন প্রজন্ম গঠন করতে হবে। ‘প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা ২০৪১ সাল নাগাদ বাংলাদেশকে উন্নত একটি রাষ্ট্রে রূপান্তর করতে চান’-এ কথা উল্লেখ করে তিনি বলেন, উন্নত রাষ্ট্রে রূপান্তরের জন্যই উন্নত জাতি গঠন করতে হবে। তথ্যমন্ত্রী গতকাল শনিবার দুপুরে চট্টগ্রামের রাঙ্গুনিয়া উপজেলার মরিয়মনগর বহুমুখী উচ্চ বিদ্যালয়ের সুবর্ণ জয়ন্তী অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথির বক্তৃতায় এসব কথা বলেন। তিনি বলেন, ‘আমাদের সন্তানরা বড় ডাক্তার হবে,সরকারি বড় কর্মকর্তা হবে, কিন্তু গ্রামের দরিদ্র কৃষকের জন্য তার দরজা খোলা রাখবে না,তেমন উন্নয়ন আমরা চাই না। আমাদের নতুন প্রজন্ম নিজেদেরকে এমন ভাবে গড়ে তুলবে যাতে করে তাদের মধ্যে মেধা বিকাশের পাশাপাশি,সামাজিক মূল্যবোধ,দেশাত্মবোধ ও মানুষের প্রতি মমত্ববোধ সমুন্নত থাকে।’ সুবর্ণ-জয়ন্তী উদ্যাপন পরিষদের আহবায়ক শওকত হোসেন সেতু’র সভাপতিত্বে অনুষ্ঠানে বিশেষ অতিথি ছিলেন বিদ্যালয়ের প্রাক্তন ছাত্র ও চট্টগ্রাম প্রকৌশল ও প্রযুক্তি বিশ্ববিদ্যালয়ের (চুয়েট) উপাচার্য ড. মোহাম্মদ রফিকুল আলম, রাঙ্গুনিয়া উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা মো. মাসুদুর রহমান, আমেরিকা প্রবাসী অধ্যাপক ড. আবুল কালাম আজাদ, অর্থোপেডিক বিশেষজ্ঞ ডা. ইমাম উদ্দিন, রাঙ্গুনিয়া সরকারি কলেজের অধ্যক্ষ মো. আবু ইউসুফ, আবুধাবী বঙ্গবন্ধু পরিষদ কেন্দ্রিয় কমিটির সভাপতি ইফতেখার হোসেন বাবুল, ইঞ্জিনিয়ার অমর কান্তি বড়ুয়া, সাবেক উপজেলা চেয়ারম্যান মুহাম্মদ আলী শাহ, প্রকৌশলী আব্দুল লতিফ, ইউপি চেয়ারম্যান মুজিবুল হক হিরু, সুবর্ণ জয়ন্তী উদযাপন পরিষদের সদস্য সচিব জি এম এইচ সিরাজী প্রমুখ। ড. হাছান বলেন,‘পারিবারিক ও সামাজিক মূল্যবোধে আমরা প্রাশ্চাত্যের চাইতেও অনেক বেশি ধনী। কিন্তু প্রাশ্চাত্যের অন্ধ অনুকরণে আমাদের পারিবারিক এবং সামাজিক মূল্যবোধ যেন হারিয়ে না যায় এবং সেগুলো যেন আরও সমৃদ্ধ হয় সেব্যাপারে সকলকে সচেষ্ট থাকতে হবে।’ তিনি বলেন, ২০৪১ সাল নাগাদ পাশ্চাত্যের দেশগুলো যেন দেখতে পায় বাংলাদেশ তাদের মতোই বস্তগতভাবে উন্নত হয়েছে। একই সাথে তাদের চেয়ে এ দেশের নতুন প্রজন্ম দেশাত্মবোধ, মূল্যবোধ ও মমত্ববোধে অনেক বেশি উন্নত। তথ্যমন্ত্রী বলেন,‘তারা যেন আমাদেরকে অনুকরণ করে, আমরা রাষ্ট্রকে সেই জায়গায় নিয়ে যেতে চাই’। তিনি বলেন,‘আমরা তেমন উন্নয়ন চাইনা, যেটা পাশ্চাত্যে ঘটেছে। সেখানে দেখা যায়, পাশের বাড়িতে কি হচ্ছে সেটা কেউ খবর রাখেনা। পাশের বাড়িতে একাকি ৮৫ বছরের বৃদ্ধ থাকে। হঠাৎ একদিন দেখা গেলো সেই বাড়ি থেকে দুর্গন্ধ ছড়াচ্ছে। তিনি (বৃদ্ধ) একাকি মৃত্যুবরণ করেছেন। পাশের বাড়িতে খবর না রাখলেও দুর্গন্ধের কারণে তার মৃত্যুর খবর পান। অথচ এতোদিন কেউ খবর রাখেনি। তাই আমরা চাইনা যখন বৃদ্ধকালে সন্তানরা আমাদের বৃদ্ধাশ্রমে পাঠিয়ে দিক। ওইরকম উন্নয়ন আমরা চাই না।’

ড. হাছান বলেন, বাংলাদেশ এখন খাদ্য উদ্বৃত্তের দেশ। এখন খাদ্যের জন্য মানুষকে হাহাকার করতে হয় না। মানুষের মাঝে হাহাকার এখন মমত্ববোধের জন্য, ভালোবাসার জন্য,যা দিনে-দিনে লোপ পাচ্ছে। তিনি শিক্ষকদের উদ্দেশে বলেন, শিক্ষার্থীদের মেধাবিকাশের পাশাপাশি তাদের মধ্যে মমত্ববোধ, দেশাত্মবোধ এবং মূল্যবোধের অনুপ্রবেশ ঘটাতে আপনাদের আরো মনযোগি হতে হবে। তথ্যমন্ত্রী বলেন,‘আমরা যদি আমাদের জীবনের পেছনে ফিরে তাকাই তাহলে আমাদের শ্রদ্ধেয় শিক্ষকদের স্মরণ করতে হয়। তাদের দেয়া শিক্ষা-দীক্ষায় চলমান এ জীবনের বহুপথ পেরিয়ে আজকের এই অবস্থানে এসেছি।’

ইবিতে ক্লিন ক্যাম্পাস কর্মসূচি পালন 

জাতির পিতা বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের জন্মশতবার্ষিকী উপলক্ষ্যে ইসলামী বিশ্ববিদ্যালয় ইনভারমেন্টাল সায়েন্স এন্ড জিয়োগ্রাফী বিভাগের উদ্যোগে বছরব্যাপী বিভিন্ন কর্মসূচি গ্রহন করা হয়েছে। কর্মসূচির অংশ হিসেবে গতকাল শনিবার কিèন ক্যাস্পাস কর্মসূচি পালন করা হয়। সকালে মৃত্যুঞ্জয়ী মুজিব মুর‌্যাল চত্বরে এ কর্মসূচির আনুষ্ঠানিক উদ্বোধন করেন ভাইস চ্যান্সেলর প্রফেসর ড. মোঃ হারুন-উর-রশিদ আসকারী (ড. রাশিদ আসকারী)। উদ্বোধনী অনুষ্ঠানে উপস্থিত ছিলেন প্রো-ভাইস চ্যান্সেলর প্রফেসর ড. মোঃ শাহিনুর রহমান ও ট্রেজারার প্রফেসর ড. মোঃ সেলিম তোহা। অতিথিবৃন্দ ঝাড়–দিয়ে মৃত্যুঞ্জয়ী মুজিব মুর‌্যাল চত্বর পরিস্কারের মধ্যদিয়ে দিনব্যাপী এ কর্মসূচির উদ্বোধন করেন। এসময় অন্যান্যদের মধ্যে উপস্থিত ছিলেন অতিরিক্ত রেজিস্ট্রার (ভারঃ) ড. মোঃ নওয়াব আলী খান, বিভাগীয় প্রভাষক মোঃ ইনজামুল হক, বিপুল রায় ও মোঃ আনিসুল কবীর, বিভাগীয় শিক্ষার্থী এবং বিভিন্ন পর্যায়ের শিক্ষক ও কর্মকর্তাবৃন্দ। বিভাগের ১৩৫ জন শিক্ষার্থী ১২টি গ্র“পে বিভক্ত হয়ে পুরো ক্যাম্পাস পরিস্কার-পরিচ্ছন্নতার মধ্যদিয়ে দিনব্যাপী এ কর্মসূচি পালন করে।

গ্যাস-পানির মূল্য বৃদ্ধিতে জনগণের ভোগান্তি হবে না -ওবায়দুল কাদের

ঢাকা অফিস ॥  আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক এবং সড়ক পরিবহন ও সেতুমন্ত্রী ওবায়দুল কাদের বলেছেন, গ্যাস-পানির সামান্য মূল্য বৃদ্ধিতে জনগণের ভোগান্তি হবে না। উৎপাদনের খরচ সমন্বয়ের জন্য পানির দাম বৃদ্ধি করা হয়েছে। শনিবার আওয়ামী লীগ সভাপতি শেখ হাসিনার ধানমন্ডিস্থ রাজনৈতিক কার্যালয়ে আয়োজিত সংবাদ সম্মেলনে এক প্রশ্নের জবাবে তিনি এ কথা বলেন। বিদ্যুৎ ও পানির মূল্য বৃদ্ধি-সংক্রান্ত সাংবাদিকদের এক প্রশ্নের জবাবে আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক বলেন, পানি ও বিদ্যুৎ সরবরাহ নিশ্চিত করতেই কিছুটা দাম বাড়ানো হয়েছে। কারণ সরকার বিদ্যুতে যেমন ভর্তুকি দিচ্ছে পানিতেও সেরকম ভর্তুকি দেয়া লাগছে। তিনি বলেন, মুজিববর্ষে আমরা শতভাগ বিদ্যুতের ব্যবহার নিশ্চিত করতে চাই। প্রত্যেক ঘরে আমরা বিদ্যুতের আলো জ্বালাতে চাই। সামনে গরমের সিজন, লোকজন যেন কষ্ট না পায় সেজন্য আমরা বিদ্যুৎ ব্যবস্থা নিরবচ্ছিন্ন করতে চাই। একটু কষ্ট হলেও জনগণ এর সুবিধা পাবে। দলের চেয়ারপারসন বেগম খালেদা জিয়ার জামিন বিষয়ে আদালতের বিরুদ্ধে অঘোষিত যুদ্ধ বিএনপি চালিয়ে যাচ্ছে মন্তব্য করে ওবায়দুল কাদের বলেন, বিএনপি কার বিরুদ্ধে বিক্ষোভ করছে? তারা বিক্ষোভ করছে আদালতের বিরুদ্ধে। এ বিক্ষোভ কোন রাজনৈতিক নেতাদের বা দলের বিরুদ্ধে নয়। আদালত বেগম খালেদা জিয়াকে জামিন দেয়নি বলেই তারা এ কর্মসূচি পালন করছে। এটা আদালতের বিরুদ্ধে অঘোষিত একটা কর্মসূচি। অপকর্ম, সন্ত্রাস, দুর্নীতি ও মাদকের সঙ্গে যারাই জড়িত তারা নজরদারিতে আছেন জানিয়ে আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক বলেন, শুধু পাপিয়া নয়, অপকর্ম, সন্ত্রাস, দুর্নীতি ও মাদকের সঙ্গে যারাই জড়িত তারা নজরদারিতে আছেন। এছাড়া পাপিয়াদের পিছনে যারা আছেন তারাও নজরদারির বাইরে নয়। টার্গেট পূরণ না হওয়া পর্যন্ত অভিযান অব্যাহত থাকবে। করোনাভাইরাস পরিস্থিতি উন্নতি না হলে পদ্মা সেতু নির্মাণকাজে কিছুটা সমস্যা হতে পারে জানিয়ে সেতুমন্ত্রী বলেন, প্রায় এক হাজারের মতো চীনের অধিবাসী পদ্মা সেতুতে কাজ করে। এখান থেকে ১৫০ জন ছুটিতে দেশে গেছেন। যদি দুই মাসের মধ্যে করোনাভাইরাসের কোনো উন্নতি না হয় তাহলে পদ্মা সেতুর কাজে সামান্য বিঘ্ন ঘটবে। সংবাদ সম্মেলনে উপস্থিত ছিলেন আওয়ামী লীগের বিজ্ঞান ও প্রযুক্তিবিষয়ক সম্পাদক প্রকৌশলী আবদুস সবুর এবং উপ-দফতর সম্পাদক সায়েম খান।

করোনাভাইরাস সংক্রমণ চলতে থাকলে পদ্মা সেতুর কাজের ক্ষতি

ঢাকা অফিস ॥ আগামী দুই মাসের মধ্যে করোনাভাইরাস পরিস্থিতির উন্নতি না হলে পদ্মা সেতুর কাজের উপর প্রভাব পড়তে পারে বলে জানিয়েছেন সড়ক পরিবহন ও সেতুমন্ত্রী ওবায়দুল কাদের। শনিবার ধানমন্ডিতে আওয়ামী লীগ সভানেত্রীর রাজনৈতিক কার্যালয়ে  এক সংবাদ সম্মেলনে একথা জানান দলটির সাধারণ সম্পাদক কাদের। তিনি বলেন, “এখানে প্রায় এক হাজারের মতো চীনা কর্মী কাজ করে। এর মধ্যে ১৫০ জন ছুটিতে গেছেন। তারপরও ২৫তম স্প্যান বসানো হয়েছে। “আগামী দুই মাসের মধ্যে করোনাভাইরাস পরিনস্থিতির যদি উন্নতি না হয়, আর যারা ছুটিতে আছেন তারা ফিরে না এলে পদ্মা সেতুর কাজে কিছুটা সমস্যার সম্মুখীন হতে হবে।” কিন্তু  তাতেও পদ্মা সেতু কিংবা চট্টগ্রামের কর্ণফুলী টানেলের কাজ বন্ধ হবে না জানিয়ে তিনি বলেন, “যথারীতি কাজ চলবে পদ্মা সেতুর স্প্যান বসবে। কাজ বন্ধ হবে না।” পানি ও বিদ্যুতের দাম বাড়ানোর কারণে নেতিবাচক কোনো প্রভাব পড়বে বলে মনে করেন কি না- জানতে চাইলে কাদের বলেন, “বিদ্যুতের সরবরাহ অক্ষুন্ন রাখার জন্যই দাম বৃদ্ধি করা হচ্ছে। সরকার যে ভর্তুকি দিচ্ছে, তার খরচ মেটানোর জন্য কিছুটা দাম বৃদ্ধি করা হচ্ছে। “এখনও যথেষ্ট পরিমাণে ভর্তুকি দিতে হচ্ছে। মূল্যবৃদ্ধির পরেও সাড়ে তিন হাজার কোটি টাকা দিতে হবে।” মুজিববর্ষ উপলক্ষে প্রতিটা ঘরে বিদ্যুৎ পৌঁছে দেওয়ার লক্ষ্যের কথা জানিয়ে তিনি বলেন, “সেই টার্গেটকে সামনে রেখেই বিদ্যুতের কিছু আনুষাঙ্গিক খরচ আছে, তা পূরণ করতে এবং ক্রমাগত ভর্তুকি কমাতে কিছু দাম বাড়ানো হচ্ছে। “এতে বিদ্যুতের কোনো ক্রাইসিস হবে না। আগে দাম বাড়ত, কিন্তু লোড শেডিং কমত না। এখন বিদ্যুতের সরবরাহ ২৪ ঘণ্টা নিশ্চিত করা হবে।” ওয়াসার পানির দামের বিষয়ে কাদের বলেন, “ঢাকা শহরে পানির জন্য এক সময় হাহাকার ছিল, এখন কিন্তু তা নেই। কিছু ঘাটতি থাকতে পারে, উৎপাদন খরচ, এজন্যই কিছুটা দাম বৃদ্ধি করা হচ্ছে। কতকাল আর ভর্তুকি দিবে সরকার। আস্তে আস্তে কমাতে হবে।” খালেদা জিয়ার জামিন না পেয়ে বিএনপির কর্মসূচি ‘আদালতের  বিরুদ্ধে অঘোষিত যুদ্ধ’ বলে মন্তব্য করেছেন আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক। বিএনপির কেন্দ্রীয় কার্যালয়ে নেতাকর্মীদের ঢুকতে বাধার অভিযোগের বিষয়ে তিনি বলেন, “আসলে বিএনপি আদালতের বিরুদ্ধে অঘোষিত যুদ্ধ ঘোষণা করেছে। ঢাকা শহরের নেতাকর্মীদের নিয়ে যে বিক্ষোভের ডাক দিয়েছে, এই বিক্ষোভ আদালতের বিরুদ্ধে। এই বিক্ষোভ সরকারের বিরুদ্ধে নয়।”