উপজেলা নির্বাচনকে কেন্দ্র করে

শৈলকুপার ৬০ বিঘা জমিতে পিয়াজ চাষে বাঁধা

ঝিনাইদহ প্রতিনিধি ॥ ঝিনাইদহের শৈলকুপায় উপজেলা নির্বাচনকে কেন্দ্র করে নৌকার পক্ষে কাজ করার অপরাধে এবং স্থানীয় গ্র“পিং এর কারনে উপজেলার পাইকপাড়া গ্রামের ১৫টি পরিবার ৮মাস যাবৎ বাড়ি ছাড়া রয়েছে। তাছাড়া ঐ পরিবারগুলোর ৬০বিঘা জমিতে পিয়াজ চাষে বাঁধা প্রদান করার অভিযোগ পাওয়া গেছে। জানা যায় নির্বাচন পরবর্তি সহিংসতায় গত আগস্টের ৪তারিখে মৃত আব্দুল জব্বার শেখের স্ত্রী পতিরন নেছা নামে একজন মহিলা নিহত হন। নিহতের ঘটনায় ৪৪জনকে আসামী করে থানায় মামলা করে। মামলার আসামীরা মামলা তুলে নিতে বাদিকে অব্যাহত চাপ দিয়ে যাচ্ছে, এই মামলা তুলে না নেওয়ার কারনে ১৫টি পরিবারের ৬০বিঘা জমিতে পিয়াজ চাষ করতে দেওয়া হয়নি বলে জানা যায়। মামলার আসামীরা উপজেলা নির্বাচনে সবায় নৌকার বিরুদ্ধে সোনা সিকদারের আনারস মার্কার পক্ষে ভোটে কাজ করেছে, আর যারা নৌকা প্রার্থী নায়েব আলী জোয়ার্দ্দারের পক্ষে কাজ করেছে তাদের উপরেই এই নির্যাতন চলছে বলে জানান ভুক্তভোগিরা। এ বিষয়ে উপজেলার পাইক পাড়া গ্রামের ষাটউর্দ্ধো আমিরুল ইসলাম বিশ্বাস, রেজা বিশ্বাস, হাসেম আলী বিশ্বাস, আব্দুল্লাহ বিশ্বাস, কাসেম বিশ্বাস জানান আমরা উপজেলা নির্বাচনে আওয়ামী লীগের নৌকা প্রতিকের পক্ষে কাজ করার অপরাধে আমাদের ছেলে মেয়েদের দীর্ঘ ৮মাস যাবৎ বাড়িতে অবস্থান করতে দেয় না। হত্যা মামলার আসামী রাজ্জাক মন্ডল, সালামত, স্বপন, বাদশা ও রবিউলসহ সংঘবদ্ধ চক্রটি আমাদের ১৫টি পরিবারের ৬০বিঘা জমিতে পিয়াজসহ সকল চাষে বাধা দিয়ে যাচ্ছে। আবার অনেকে এদের টাকা পয়সা দিয়ে মাপ চেয়ে কিছু চাষ করেছে। সারা জীবন আওয়ামী লীগ করেও আমরা এখন সর্বোচ্চ নির্যাতনের স্বীকার হচ্ছি। তারা এই অবস্থার অবসানের জন্য প্রধানমন্ত্রীসহ স্থানীয় প্রশাসনের হস্তক্ষেপ কামনা করেছেন। এই বিষয়ে শৈলকুপা উপজেলা কৃষি কর্মকতা সঞ্জয় কুমার কুন্ডু জানান ৬০বিঘা জমিতে পিয়াজ চাষ করতে না পারা বিষয়ে একটা লিখিত অভিযোগ পেয়েছি। এ বিষয়ে শৈলকুপা থানারওসি(তদন্ত) মহসিন হোসেন জানান এবিষয়ে কোন লিখিত অভিযোগ পায়নি অভিযোগ পেলে তদন্ত স্বাপেক্ষে দ্রুত ব্যবস্থা নেওয়া হবে।

দৌলতপুরে খন্দকার এম. একাডেমিতে বার্ষিক ক্রীড়া প্রতিযোগিতার পুরস্কার বিতরণ

দৌলতপুর প্রতিনিধি ॥ কুষ্টিয়ার দৌলতপুরে জাতির জনক বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমান-এঁর জন্মশত বার্ষিকী উপলক্ষে খন্দকার এম. একাডেমীর ক্রীড়া ও সাংকৃতিক প্রতিযোগীতার পুরস্কার বিতরণ করা হয়েছে। গতকাল রবিবার সকাল ১০টায় উপজেলার আল্লা¬রদর্গায় খন্দকার এম. একাডেমীতে এ পুরস্কার বিতরণ অনুষ্ঠিত হয়। খন্দকার এম. একাডেমীর প্রধান শিক্ষক মশিউর রহমানের সভাপতিত্বে প্রধান অতিথি ছিলেন, দৌলতপুর উপজেলা আওয়ামীলীগের বন ও পরিবেশ বিষয়ক সম্পাদক নাসির উদ্দিন আহামেদ। বিশেষ অতিথি ছিলেন, সোনাইকুন্ডি সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়ের প্রাক্তন প্রধান শিক্ষক আলহাজ্ব গিয়াস উদ্দিন। অনুষ্ঠানে বক্তব্য রাখেন, আল্লারদর্গা প্রেসক্লাবের সভাপতি খন্দকার জালাল উদ্দিন, দৈনিক জনকন্ঠ পত্রিকার দৌলতপুরের সাংবাদিক সাইদুল আনাম, খন্দকার এম. একাডেমীর সহকারি প্রধান শিক্ষিকা নাহিদ ফাতেমা রুমা, সহকারি শিক্ষিকা শ্যামলী খাতুন ও হাজেরা বেগম প্রমূখ। আলোচনা শেষে বিজয়ীদের মাঝে পুরস্কার সামগ্রী বিতরন করা হয়। এ সময়  আল্লারদর্গা খন্দকার এম. একাডেমীর ছাত্র-ছাত্রী, অভিভাবক ও স্থানীয় সুধীজন উপস্থিত ছিলেন।

দৌলতপুরে জাতীয় ভোটার দিবস উদযাপনের প্রস্তুতি সভা অনুষ্ঠিত

দৌলতপুর প্রতিনিধি ॥ কুষ্টিয়ার দৌলতপুরে জাতীয় ভোটার দিবস উদযাপনের প্রস্তুতি সভা অনুষ্ঠিত হয়েছে। গতকাল রবিবার বেলা ১১টায় উপজেলা পরিষদ কনফারেন্স রুমে ভোটার দিবস উদযাপন কমিটির এ সভা অনুষ্ঠিত হয়। দৌলতপুর সহকারী কমিশনার (ভূমি) মো. আজগর আলীর সভাপতিত্বে সভায় জাতীয় ভোটার দিবসের তাৎপর্য তুলে ধরে বক্তব্য রাখেন, দৌলতপুর নির্বাচন অফিসার মো. গোলাম আজম। বক্তব্য রাখেন, দৌলতপুর শিক্ষা অফিসার মো. মুনতাকিমুর রহমান, মাধ্যমিক শিক্ষা অফিসার সরদার মো. আবু সালেক, দৌলতপুর মৎস্য অফিসার খন্দকার সহিদুর রহমান, দৌলতপুর কলেজের বাংলা বিভাগের সহকারী অধ্যাপক সরকার আমিরুল ইসলাম, দৌলতখালী মাধ্যমিক বিদ্যালয়ের প্রধান শিক্ষক মজিবর রহমান ও দৌলতপুর প্রেসক্লাবের সাধারণ সম্পাদক শরীফুল ইসলাম। সভায় আগামী ২ মার্চ সারা দেশের ন্যায় দৌলতপুরেও বিভিন্ন কর্মসূচীর মধ্যদিয়ে যথাযোগ্য মর্যদায় জাতীয় ভোটার দিবস উদযাপন করা গ্রহণ করা হয়। কর্মসূচীর মধ্যে রয়েছে বর্ণাঢ্য র‌্যালি ও আলোচনা সভাসহ জনসচেতনতা মূলক বিভিন্ন কার্যক্রম।

সভাপতি বাচ্চু, সম্পাদক মুকুল

কুষ্টিয়া সাংবাদিক ইউনিয়নের ত্রি-বার্ষিক নির্বাচন সম্পন্ন

কুষ্টিয়া সাংবাদিক ইউনিয়ন, রেজিঃ নং খুলনা ২০৬৯ এর ২০২০ ত্রি-বার্ষিক নির্বাচন সম্পন্ন হয়েছে। শনিবার সন্ধ্যায় সংগঠনের কার্যালয়ে ত্রি-বার্ষিক নির্বাচনের ফলাফল ঘোষনা করা হয়। ৯টি পদের বিপরীতে একটি মাত্র প্যানেল নির্বাচনে অংশ গ্রহন করায় সব কয়টি পদকে বিনা প্রতিদ্বন্দ্বিতায় নির্বাচিত ঘোষনা করেন নির্বাচন পরিচালনা কমিটি। বিনা প্রতিদ্বন্দ্বিতায় নির্বাচিত ব্যক্তিরা হলেন, সভাপতি পদে আব্দুর রাজ্জাক বাচ্চু (মাই টিভি ও দৈনিক আমাদের কন্ঠ), সহ-সভাপতি পদে লুৎফর রহমান কুমার (সম্পাদক-দৈনিক মাটির ডাক), সাধারণ সম্পাদক পদে নজরুল ইসলাম মুকুল (দৈনিক আমার সংবাদ), যুগ্ম সম্পাদক এম এ জিহাদ (এফএনএস নিউজ), সাংগঠনিক সম্পাদক খালিদ হাসান সিপাই ( দৈনিক সংগ্রাম), কোষাধ্যক্ষ এনামুল হক  (দৈনিক আমার বার্তা), প্রচার সম্পাদক নূরুন্নবী বাবু (দৈনিক সময়ের কাগজ), দপ্তর সম্পাদক আব্দুম মুনিব ( দৈনিক আমাদের অর্থনীতি)  ও নির্বাহী সদস্য হায়দার আলী ( দিন পরিবর্তন)। কুষ্টিয়া সাংবাদিক ইউনিয়নের ত্রি-বার্ষিক নির্বাচনের তফশীল গত ২৮ জানুয়ারী’২০ ঘোষনা করা হয়।  ৬ই ফেব্র“য়ারী ’২০ মনোনয়নপত্র ক্রয় এবং ৬-৭ ফেব্র“য়ারী মনোনয়নপত্র জমা দেয়ার তারিখ ঘোষনা করা হয়। ১৫ই ফেব্রুয়ারী’২০ মনোনয়ন পত্র প্রত্যাহারের শেষ দিন ধার্য্য করা হয়। ৬ই ফেব্র“য়ারী  ৯জন প্রার্থী মনোনয়নপত্র ক্রয় করেন এবং ৭ ফেব্র“য়ারী  ৯জন প্রার্থী তাদের মনোনয়নপত্র নির্বাচন কমিশনারের নিকট জমা দেন। মনোনয়নপত্র যাচাই-বাচাই শেষে সব কয়টি মনোনয়নপত্র নির্বাচন পরিচালনা কমিটি বৈধ ঘোষনা করেন। ১৫ই ফেব্র“য়ারী  মনোনয়নপত্র প্রত্যাহারের শেষ দিন থাকলেও কোন প্রার্থী তাদের মনোনয়নপত্র প্রত্যাহার না করায়  নির্বাচন পরিচালনা কমিটি ৯জন প্রার্থীকে বিনা প্রতিদ্বন্দ্বিতায় চুড়ান্ত  নির্বাচিত ঘোষনা করেন। কুষ্টিয়া সাংবাদিক ইউনিয়নের ত্রি-বার্ষিক নির্বাচনের ফলাফল ঘোষনা করেন নির্বাচন পরিচালনা কমিটির সভাপতি এ্যাড. শাতিল মাহমুদ, সদস্য সচিব মুজিবুল শেখ, সদস্য শেহাব উদ্দিন। উল্লেখ্য কুষ্টিয়া সাংবাদিক ইউনিয়নের কার্য নির্বাহী কমিটি ১৮ আগষ্ট-২০১৯ সভায়, ৩০ সেপ্টেম্বর ২০১৯ সাধারণ পরিষদের সভায় এবং ২৮ অক্টোবর ২০১৯ নির্বাচন পরিচলানা কমিটির সভায় সিদ্ধান্ত মোতাবেগ তফসিল ঘোষনা করা হয়। সংবাদ বিজ্ঞপ্তি

গাংনীতে মডেল মসজিদ নির্মাণের কাজ শুরু

প্রচন্ড আঘাতে ভূ-কম্পনে পাশের ভবনগুলি ঝুঁকিপূর্ণ 

গাংনী প্রতিনিধি ॥ বাংলাদেশ সরকারের ধর্ম মন্ত্রণালয়ের ইসলামিক ফাউন্ডেশনের অধীনে নির্মাণ প্রকল্পের আওতাধীন ৫৬০টি মডেল মসজিদ নির্মাণের মধ্যে গাংনী উপজেলা পরিষদ মসজিদ নির্মাণের কার্যক্রম শুরু হয়েছে। ৫০ ফুট দৈর্ঘ্য বিশিষ্ট ঢালাই পিলার বসানোতে কারিগরি প্রযুক্তি ব্যবহার করা হচ্ছে। পাইলিং মেশিনের মাধ্যমে ৫ মে ঃ টন ওজন বিশিষ্ট হ্যামার দিয়ে উপর থেকে প্রচন্ড আঘাতের মাধ্যমে মাটির নিচে বসানো হচ্ছে। প্রচন্ড আঘাতের ফলে ভূ-কম্পনের সৃষ্টি হচ্ছে। পাইলিং দেখতে প্রতিদিন শত-শত  উৎসুক জনতা জমায়েত হয়। ফলে পার্শ্ববর্তী সরকারী ২ টি খাদ্য গুদাম, বিআরডিবি’র দ্বি-তল ভবন, বিএডিসি ভবন,গাংনী উপজেলা অডিটোরিয়াম,উপজেলা সাব রেজিষ্টার অফিস, উপজেলা জনস্বাস্থ্য বিভাগের অফিস, পার্শ্ববর্তী বাড়ীসহ অনেকগুলি  ভবন মারাত্মক ঝুঁকির মধ্যে  রয়েছে। দেয়ালে ফাটলের আশংকা রয়েছে। উপজেলা প্রকৌশল বিভাগের একজন প্রকৌশলী জানান, একই স্থানে প্রতিনিয়ত ভূ-কম্পন হলে পাশের ভবনগুলির দেয়ালে ফাটল ধরতে পারে। এনিয়ে গণপূর্ত বিভাগের সহকারী প্রকৌশলী  জামালউদ্দীন জানান, ঠিকাদারী প্রতিষ্ঠানকে নির্দেশনা দেয়া আছে তারা ৫ টন ওজনের হ্যামার দিয়ে সব্র্চ্চো ৩ ফুট উপর থেকে আঘাত করে পিলার মাটির নিচে বসাবে। ভূ-কম্পনের ফলে পাশের ভবনের কিছুটা ক্ষতি হবে। তবে প্রয়োজনে আমরা মসজিদ ভবনের চারিপাশে ৫/৬ ফুট গর্ত করে দিলে ঝুঁকি অনেকটা কমে যাবে। এ ব্যাপারে উপজেলা নির্বাহী অফিসার দিলারা রহমানকে বিষয়টি অবহিত করলে তিনি জানান, ক্ষতি এড়াতে  বিষয়টি নিয়ে প্রকৌশলীর সাথে অলাপ করতে হবে। গণপূর্ত বিভাগ, মেহেরপুরের বাস্তবায়নে এবং ঠিকাদার কবির হোসেনের মাধ্যমে ১৩ কোটি ৭০ লক্ষ টাকা প্রাক্কলিত ব্যয়ে মডেল মসজিদ নির্মিত হবে বলে অফিস সূত্রে জানা গেছ্।ে অফিস সূত্রে আরও গেছে, মসজিদ নির্মাণে  ১৫২ টি ৫০ ফুট দৈর্ঘ্য বিশিষ্ট ঢালাই পিলার বসানো হবে।

আজ শহীদ মারফত আলীর ২৯তম মৃত্যুবার্ষিকী

আমলা অফিস ॥ আজ বেদনা বিধুর ১৭ ফেব্র“য়ারী। কুষ্টিয়ার বিএলএফ প্রধান, আমলা সরকারী ডিগ্রী কলেজের প্রতিষ্ঠাতা, উত্তরবঙ্গের প্রখ্যাত কৃষক নেতা, বীরমুক্তিযোদ্ধা শহীদ মারফত আলীর ২৯তম মৃত্যুবার্ষিকী। সাবেক এ মিরপুর উপজেলা পরিষদের চেয়ারম্যানের মৃত্যুবার্ষিকী উপলক্ষ্যে কুষ্টিয়ার আমলা সরকারী ডিগ্রী কলেজ প্রাঙ্গনে শহীদ মারফত আলী স্মৃতি সংসদের আয়োজনে দিনব্যাপী এক স্মরণ সভা, কালো ব্যাজ ধারণ, মরহুমের মাজারে পুষ্পস্তবক অর্পণের আয়োজন করা হয়েছে। আমলা সরকারি ডিগ্রি কলেজের অধ্যক্ষ প্রফেসর মহব্বত হোসেনের সভাপতিত্বে বেলা ১১টায় স্মরণ সভায় প্রধান অতিথির বক্তব্য রাখবেন সাবেক সংসদ সদস্য ও বীর মুক্তিযোদ্ধা আব্দুল মতিন মিয়া। এছাড়াও মুক্তিযোদ্ধাগণ, শিক্ষাবিদ, বিভিন্ন রাজিৈনতক ব্যক্তিগত বক্তব্য রাখবেন। উল্লেখ্য- কুষ্টিয়ার বিএলএফ প্রধান, আমলা সরকারী ডিগ্রী কলেজের প্রতিষ্ঠাতা, উত্তরবঙ্গের প্রখ্যাত কৃষক নেতা, মিরপুর উপজেলা পরিষদের প্রথম চেয়ারম্যান, জাসদ নেতা বীরমুক্তিযোদ্ধা মারফত আলী ১৯৯১ সালে জাতীয় সংসদ নির্বাচনে জাসদের মনোনীত প্রার্থী হিসেবে কুষ্টিয়া-২ আসনে নির্বাচনে প্রতিদ্বন্দ্বীতা করাকালিন সময়ে আজকের এই দিনে কুষ্টিয়ার মিরপুর উপজেলার আমবাড়িয়া ইউনিয়নের ইশালমারী মাঠের মধ্যে সন্ত্রাসী চরমপন্থী নেতা সিরাজ বাহিনীর প্রধান সিরাজের নেতৃত্বে মারফত আলীকে ব্রাশফায়ার করে হত্যা করা হয়। সেই থেকে এ এলাকার জনগন প্রতিবছর এ দিনটি যথাযথভাবে পালন করে আসছে।

বাংলা সন-তারিখ ব্যবহারে হাই কোর্টের রুল

ঢাকা অফিস ॥ ভাষা শহীদ দিবসসহ বিভিন্ন দিবসের উদযাপনে বাংলা সন ও তারিখ ব্যবহারে নিষ্ক্রিয়তা কেন অবৈধ ঘোষণা করা হবে না তা জানতে চেয়ে রুল জারি করেছে হাই কোর্ট। এক রিট আবেদনের প্রাথমিক শুনানি নিয়ে বিচারপতি এম ইনায়েতুর রহিম ও বিচারপতি মো. মোস্তাফিজুর রহমানের বেঞ্চ এ রুল দেয়। এক সপ্তাহের মধ্যে মন্ত্রিপরিষদ সচিবকে রুলের জবাব দিতে বলা হয়েছে বলে আবেদনকারীর পক্ষের আইনজীবী মো. মনিরুজ্জামান লিংকন জানিয়েছেন। গত ১২ ফেব্র“য়ারি চুয়াডাঙ্গার দামুড়হুদার নস্কর আলী সরকারি-বেসরকারি, স্বায়ত্তশাসিত প্রতিষ্ঠান-সংস্থায় আন্তর্জাতিক মাতৃভাষা বা শহীদ দিবসসহ জাতীয় ও আন্তর্জাতিক বিভিন্ন দিবসের অনুষ্ঠান, পালন, উদযাপনে বাংলা সন, তারিখ ব্যবহার বা উল্লেখের নির্দেশনা চেয়ে রিট আবেদনটি করেন। আইনজীবী লিংকন সাংবাদিকদের বলেন, জাতীয়-আন্তর্জাতিক বিভিন্ন দিবস পালন বা উদযাপনে ইংরেজি তারিখের উল্লেখ থাকলেও বাংলা সন, তারিখের কোনো উল্লেখ থাকে না। সবচেয়ে দুঃখের বিষয়, ভাষা শহীদ দিবসের তারিখটাও প্রতিষ্ঠিত হয়েছে ইংরেজি তারিখে। “ঘটনার দিনটি যে ৮ ফাল্গুন ছিল, ব্যবহার না করায় তা অনেকেই জানেই না। সরকার বাংলা পঞ্জিকা পরিবর্তনের পর এখন থেকে ২১ ফেব্রুয়ারি ৮ ফাল্গুন পড়ার কথা। কিন্তু কেউ তো বাংলা সন-তারিখটা ব্যবহার করছি না। তাই বাংলা সন-তারিখ ব্যবহারের নির্দেশনা চেয়ে আবেদনটা করা হয়েছিল।”

ইবিতে বঙ্গবন্ধু আন্তঃবিভাগ ও হল ক্রিকেট প্রতিযোগিতার উদ্বোধন

কুষ্টিয়া ইসলামী বিশ^বিদ্যালয়ে বঙ্গবন্ধু আন্তঃবিভাগ ও আন্তঃহল ক্রিকেট প্রতিযোগিতা ২০২০ উদ্বোধন করা হয়েছে। গতকাল রবিবার সকালে বিশ^বিদ্যালয়ের ক্রিকেট মাঠে এ প্রতিযোগিতার আনুষ্ঠানিক উদ্বোধন করেন ভাইস চ্যান্সেলর প্রফেসর ড. মোঃ হারুন-উর-রশিদ আসকারী (ড. রাশিদ আসকারী)। প্রধান অতিথি হিসেবে উদ্বোধনী বক্তৃতায় ড. রাশিদ আসকারী বলেন, জাতির পিতা বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের জন্মশতবার্ষিকী উপলক্ষ্যে এ প্রতিযোগিতার আয়োজন করা হয়েছে। তিনি বলেন, আজ আমরা গর্বিত যে আমাদের বিশ^বিদ্যালয়ের ক্রীড়াবিদরা জাতীয় এবং আন্তর্জাতিক পর্যায়ে বিভিন্ন ইভেন্টে কৃতিত্বের স্বাক্ষর রেখে চলেছে। তিনি বলেন, আশারাখি আমাদের বিশ^বিদ্যালয়ের ক্রিকেট টিম আন্তঃবিশ^বিদ্যালয়ে অপরাজিত শক্তি হিসেবে কাজ করবে। তিনি ক্রীড়ার উন্নয়নে আরও সহযোগিতার আশ^াস প্রদান করেন। ইসলামী বিশ^বিদ্যালয় ক্রীড়া কমিটির সভাপতি ও প্রো-ভাইস চ্যান্সেলর তাঁর সভাপতির বক্তৃতায় বলেন, আমাদের বিশ^বিদ্যালয় সেশন জট, সন্ত্রাস, জঙ্গিবাদ ও র‌্যাগিং মুক্ত হিসেবে পরিচিত লাভ করেছে। এটাকে ধরে রাখতে হলে লেখাপড়ার পাশাপাশি শিক্ষার্থীদের ক্রীড়ার প্রতি আরও আগ্রহী হতে হবে। সুষ্ঠু ও সুন্দর পরিবেশে এ প্রতিযোগিতা সম্পন্ন হবে বলে তিনি আশা প্রকাশ করেন।  অনুষ্ঠানে বিশেষ অতিথির বক্তৃতায় ট্রেজারার প্রফেসর ড. মোঃ সেলিম তোহা বলেন, আমাদের বিশ^বিদ্যালয়ের গৌরবের মধ্যে অন্যতম হচ্ছে ক্রীড়া। তিনি বলেন, খেলাতে জয়-পরাজয় বড় কথা নয়, খেলার মাঠে সকল খেলোয়াড় নিয়ম-নীতি অনুসরণ করবে এটাই প্রত্যাশা করি। অনুষ্ঠানে শুভেচ্ছা বক্তব্য রাখেন শারীরিক শিক্ষা বিভাগের পরিচালক ড. মোহাম্মদ সোহেল। এসময় সিন্ডিকেট সদস্য প্রফেসর ড. মোঃ মাহবুবুর রহমান, রেজিস্ট্রার (ভারঃ) এস এম আব্দুল লতিফ সহ বিভিন্ন পর্যায়ের শিক্ষক ও কর্মকর্তাবৃন্দ উপস্থিত ছিলেন। এ প্রতিযোগিতায় বিশ^বিদ্যালয়ের সকল বিভাগের ছাত্র এবং সকল হলের ছাত্র ও ছাত্রী দল অংশগ্রহণ করবে। উদ্বোধনী খেলায় আল-হাদীস এন্ড ইসলামিক স্টাডিজ এবং লোকপ্রশাসন বিভাগ অংশগ্রহণ করে। সংবাদ বিজ্ঞপ্তি

 

ভেড়ামারায় রুবেল অটো’র ফ্রি সার্ভিসিং ক্যাম্প

আল-মাহাদী ॥ সহজ শর্তে মোটর সাইকেল এক্সচেঞ্জ এর সুযোগ দিয়ে কুষ্টিয়ার ভেড়ামারার মোটরসাইকেল বিক্রেতা প্রতিষ্ঠান রুবেল অটো ফ্রি সার্ভিসিং ক্যাম্প করেছে। গতকাল রবিবার সকালে জুনিয়াদহ বাজারে ২ দিনব্যাপী এ ক্যাম্পের শুভ উদ্বোধন ঘোষনা করেন রুবেল অটোর স্বত্তাধিকারী ও উদীয়মান তরুন উদ্দ্যোক্তা গোলাম মোস্তফা রুবেল। এ সময় উপস্থিত ছিলেন, রানার অটো মোবাইলস এর জোনাল ম্যানেজার (সার্ভিসিং) ওমর ফারুক, ভেড়ামারা প্রেসক্লাবের যুগ্ন আহবায়ক শাহ-জামাল, এস.এম.আবু ওবাইদা-আল-মাহাদী, সহকারী ম্যানেজার আল আমীন, রুবেল অটোর সিইও ইমতিয়াজ আহম্মেদ, জিএম নজমুল ইসলাম, রুবেল অটো পার্টস’র ইনচার্জ সাইফুল ইসলাম আপন, হেলাল মাহমুদ, জুনিয়াদহ বাজার কমিটির সভাপতি কে এম শাহানুল হক, তরিকুল ইসলাম, ডাঃ আমিনুল ইসলাম বিপ্লব, জুনিয়াদহ ইউনিয়ন পরিষদের ৩নং ওয়ার্ডের মেম্বার শাহাবুদ্দীন, বিশিষ্ট ব্যবসায়ী সেলিম আহমেদ মামুন, আব্দুল আজীজ মৃধা, আব্দুল বারী, নোমান জহির রাজা, মাহামুদুল্লাহ সোহেল, উজ্জল বিশ্বাস প্রমুখ। উদ্বোধনের প্রথম দিনেই ব্যাপক সাড়া পরে সার্ভিসিং ক্যাম্পে। মোটরসাইকেল এক্সচেঞ্জ ছাড়াও মোটরসাইকেল চালকদের জন্য ৮ ধরনের সুযোগ সুবিধা রাখা হয়েছে এই ক্যাম্পে।

দৌলতপুরে মুক্তিযুদ্ধের অন্যতম সংগঠক কাজী আরেফ আহমেদসহ পাঁচ জাসদ নেতা হত্যার ২১তম বার্ষিকী পালন

দৌলতপুর প্রতিনিধি ॥ বিভিন্ন কর্মসূচীর মধ্যদিয়ে মুক্তিযুদ্ধের অন্যতম সংগঠক জাসদের প্রতিষ্ঠাতা সভাপতি কাজী আরেফ আহমেদসহ পাঁচ জাসদ নেতা হত্যার ২১তম বার্ষিকী পালিত হয়েছে। শহীদ ইয়াকুব আলী স্মৃতি সংসদসহ বিভিন্ন সংগঠন বিভিন্ন কর্মসূচীর মধ্যদিয়ে দিবসটি পালন করে। এ উপলক্ষে গতকাল রবিবার সকাল ৯টায় ফিলিপনগর পিএম কলেজ চত্বরে শহীদ ইয়াকুব আলীর কবরে দৌলতপুর উপজেলা চেয়ারম্যান এ্যাড. এজাজ আহমেদ মামুন, জাসদ নেতৃবৃন্দ, শহীদ ইয়াকুব আলী স্মৃতি সংসদ ও বিভিন্ন স্কুল-কলেজের শিক্ষার্থীসহ বিভিন্ন সংগঠন পুষ্পমাল্য অর্পন করেন। এরপর পিএম কলেজ চত্বরে আয়োজিত স্মরণ সভায় বক্তব্য রাখেন, জাসদ কেন্দ্রীয় কমিটির সাংগঠনিক সম্পাদক আব্দুল আলীম স্বপন, দৌলতপুর আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক এ্যাড. শরীফ উদ্দিন রিমন, দৌলতপুর জাসদের সভাপতি ছহির উদ্দিন, সাধারন সম্পাদক ও শহীদ ইয়াকুব আলী স্মৃতি সংসদের সভাপতি শরিফুল কবীর স্বপন, পিএম কলেজের অধ্যক্ষ আব্দুল মান্নান, দৌলতপুর জাসদের যুগ্মসাধারণ সম্পাদক আশরাফুল ইসলাম নান্নু, সাংগঠনিক সম্পাদক সাইদুর রহমান ও শহীদ ইয়াকুব আলীর ছেলে ইউসুফ আলী রুশোসহ অন্যান্য নেতৃবৃন্দ ও স্থানীয় সুধীজন। উল্লেখ্য, ১৯৯৯ সালের ১৬ ফেব্র“য়ারী বিকেলে কুষ্টিয়ার দৌলতপুর উপজেলার আড়িয়া ইউনিয়নের কালিদাসপুর সরকারী প্রাথমিক বিদ্যালয় মাঠে সন্ত্রাস বিরোধী এক জনসভায় মুক্তিযুদ্ধের অন্যতম সংগঠক জাসদ সভপাতি কাজী আরেফ আহমেদ, জেলা জাসদের সভাপতি লোকমান হোসেন, সাধারন সম্পাদক এ্যাড. ইয়াকুব আলী, স্থানীয় জাসদ নেতা ইসরাইল হোসেন ও শমসের মন্ডল সন্ত্রাসীদের এলোপাতাড়ি গুলিতে ঘটনাস্থলেই নিহত হন। হত্যাকান্ডের ঘটনায় সে সময় দেশজুড়ে ব্যাপক তোলপাড় ও আলোড়ন সৃষ্টি হয়।

 

আলমডাঙ্গা উপজেলা ও পৌর আওয়ামীলীগের  উদ্যোগে ২১ ফেব্র“য়ারী পালন উপলক্ষে প্রস্তুতি সভা

আলমডাঙ্গা অফিস ॥ আলমডাঙ্গা উপজেলা ও পৌর আওয়ামীলীগের  উদ্যোগে ২১ ফেব্র“য়ারী পালন উপলক্ষে প্রস্তুতি সভা গতকাল আওয়ামীলীগ কার্যালয়ে প্রস্তুতি সভা অনুষ্ঠিত হয়েছে। পৌর আওয়ামীলীগের সভাপতি সাবেক উপজেলা ভাইস চেয়ারম্যান দেলোয়ার হোসেনের সভাপতিত্বে প্রধান অতিথি ছিলেন উপজেলা আওয়ামীলীগের সভাপতি পৌর মেয়র হাসান কাদির গনু। বিশেষ অতিথি ছিলেন উপজেলা পরিষদের চেয়ারম্যান আইয়ুব হোসেন,  উপজেলা আওয়ামীলীগের সহসভাপতি লিয়াকত আলী লিপু মোল্লা, উপজেলা আ’লীগের ভারপ্রাপ্ত সম্পাদক ইয়াকুব মাস্টার, সাংগঠনিক সম্পাদক আতিয়ার রহমান, আলম হোসেন, ক্রীড়া সম্পাদক মহিদুল ইসলাম মহিদ, ডা.অমল কুমার বিশ^াস, উপজেলা যুবলীগের আহ্বায়ক আহসান উল্লাহ, যুগ্ম আহব্বায়ক সাজ্জাদুল ইসলাম খান স্বপন, শাহিন রেজা শাহিন, সাবেক ছাত্রলীগ নেতা আবু ডালিম। পৌর আওয়ামীলীগের সাধারন সম্পাদক কাউন্সিলর মতিয়ার রহমান ফারুকের উপস্থাপনায় উপস্থিত ছিলেন কুমারী ইউনিয়ন আ’লীগের সম্পাদক আব্দুর রাজ্জাক, পৌর ওয়ার্ড আওয়ামীলীগের  সভাপতি ও সম্পাদক সোনা উল্লাহ, কামাল হোসেন, জাহাঙ্গীর আলম, মজিবুল ইসলাম, কাউন্সিলর জহুরুল ইসলাম স্বপন প্রমুখ।

কালুখালীতে বিনামূল্যে ভ্যানগাড়ী বিতরণ

ফজলুল হক ॥ রাজবাড়ী জেলাধীন কালুখালীতে বাংলাদেশ এনজিও ফাউন্ডেশনের অর্থায়নে গতকাল রবিবার বিনামূল্যে ভ্যানগাড়ী বিতরণ করা হয়েছে। গ্রামীণ জনউন্নয়ন সংস্থা গোয়ালপাড়া, কালুখালী, রাজবাড়ীর বাস্তবায়নে উপজেলার ১৫ জন অসহায় দরিদ্রদের মাঝে বিনামূল্যে ভ্যানগাড়ী বিতরণকালে সংস্থার কার্যালয়ে এক আলোচনা সভায় সংস্থার নির্বাহী পরিচালক শেখ মুহাঃ মাসুদ রানা এর সভাপতিত্বে প্রধান অতিথি হিসেবে উপস্থিত ছিলেন উপজেলা নির্বাহী অফিসার (ভারপ্রাপ্ত) শেখ নুরুল আলম। বিশেষ অতিথি হিসেবে সহকারী মহাব্যবস্থাপক বাংলাদেশ এনজিও ফাউন্ডেশন আর্থিক বিভাগ অর্থ মন্ত্রণালয় মোঃ আরিফ হোসেন, জেলা রেড ক্রিসেন্ট ইউনিট এর সাধারণ সম্পাদক আকরাম হোসেন এছাড়াও অন্যান্য  এনজিওর নিবাহী পরিচালক মনিরুজ্জামান সোহেল, মোঃ নাসির উদ্দিন, মোকাররম হোসেন অন্যান্যের মধ্যে ইউপি আওয়ামীলীগ নেতা শেখ রেজাউল করিম, সালেহা সামাদ হাসপাতালের এমডি ডাঃ এসএম আবু হুসাইনসহ স্থানীয় সাংবাদিক, জনপ্রতিনিধি ও গণ্যমান্য ব্যক্তিবর্গ উপস্থিত ছিলেন।

কুষ্টিয়ায় কাজী আরেফ স্মৃতি সংসদের আয়োজনে কাজী আরেফ আহমেদ হত্যা দিবসে বক্তারা

খুনিদের গ্রেফতার ও রায় কার্যকরই হবে জাতীয় নেতার প্রতি যথার্থ সম্মান

নিজ সংবাদ ॥ মহান মুক্তিযুদ্ধের অন্যতম সংগঠক ও স্বাধীন বাংলার পতাকা রূপকার নিউক্লিয়াস সদস্য সন্ত্রাস ও সাম্প্রদায়িকতামুক্ত দেশ গড়ার স্বপ্নদ্রষ্টা জাতীয় সমাজতান্ত্রিক দল জাসদ’র প্রতিষ্ঠাতা সভাপতি কাজী আরেফসহ ৫জাসদ নেতাকে হত্যা দায়ে মৃত্যুদন্ড প্রাপ্ত পলাতক আসামীদের গ্রেফতার ও রায় কার্যকরের দাবিতে নৃশংস এই হত্যাকান্ডের ২১তম দিবস পালিত হয়েছে। গতকাল রবিবার বিকেল সাড়ে ৩টায় ১৯৯৯ সালের ১৬ ফেব্র“য়ারী সংগঠিত নৃশংস এই হত্যা দিবস স্মরণে কাজী আরেফ স্মৃতি সংসদের আয়োজনে এবং সংসদের সাধারণ সম্পাদক কারশেদ আলমের সভাপতিত্বে কুষ্টিয়া পৌরসভা বিজয় উল্লাস চত্বরে শিশু কিশোর চিত্রাঙ্কন প্রতিযোগিতা ও স্মরণ সভা অনুষ্ঠিত হয়।  স্মরণ সভায় বক্তব্য রাখেন, কাজী আরেফ’র রণাঙ্গনের সহযোদ্ধা বৃহত্তর কুষ্টিয়ায় স্বাধীন বাংলার প্রথম পতাকা উত্তোলনকারী বীর মুক্তিযোদ্ধা এ্যাড. আব্দুল জলিল, জাসদ কেন্দ্রীয় কমিটির সাংগঠনিক সম্পাদক আব্দুল আলীম স্বপন, সম্মিলিত সামাজিক আন্দোলনের সভাপতি বীর মুক্তিযোদ্ধা নজরুল ইসলাম, জেলা জাসদ সভাপতি গোলাম মহসিন, সিপিবি কুষ্টিয়ার সাবেক সভাপতি বীর মুক্তিযোদ্ধা রফিকুল ইসলাম, বাংলাদেশের ওয়ার্কার্স পার্টির সভাপতি ফজলুল হক বুলবুল, সাংস্কৃতিক ব্যক্তিত্ব কনক চৌধুরী ও শাহীন সরকার, জাসদ কেন্দ্রীয় কমিটির সদস্য মোহাম্মদ আব্দুল্লাহ, কেন্দীয় নেতা শরিফুল কবীর স্বপন, জেলা জাসদের যুগ্ম সাধারণ সম্পাদক জিল্লুর রহমান, লেখক ও কবি ডা. তাজ উদ্দিন, লেখক আব্দুল আজিজ, মিরপুর জাসদ নেতা আহাম্মদ আলী, সদর উপজেলা জাসদ সভাপতি আমিরুল ইসলাম মকলু, সাবেক ছাত্রনেতা রাশিব রহমান, খোকসা উপজেলা জাসদ নেতা সাইফুজ্জামান রুবেল যুব নেতা সাইফুল ইসলাম পিন্টু। অনুষ্ঠান পরিচালনায় ছিলেন মাহবুব হাসান। এসময় বক্তারা বলেন, ১৯৯৯ সালে ১৬ ফেব্র“য়ারী তৎকালীন সন্ত্রাস কবলিত রক্তাক্ত জনপদ খ্যাত কুষ্টিয়ার  দৌলতপুর উপজেলার আড়িয়া ইউনিয়নের কালিদাসপুর সরকারী প্রাথমিক বিদ্যালয় মাঠে এক সন্ত্রাস বিরোধী সমাবেশ চলাকালে প্রকাশ্যে সন্ত্রাসীরা মহান মুক্তিযুদ্ধের এই সংগঠক জাতীয় নেতা কাজী আরেফ আহামেদসহ জেলা জাসদের সভাপতি বীরমুক্তিযুদ্ধা লোকমান হোসেন, সাধারন সম্পাদক উপজেলা পরিষদের চেয়ারম্যান বীর মুক্তিযুদ্ধা এ্যাডঃ ইয়াকুব আলী, স্থানীয় নেতা ইসরাইল হোসেন তফসের ও শমসের মন্ডল ৫জাসদ নেতাকে ব্রাশফায়ার করে হত্যা করে। নৃশংস এই হত্যাকান্ড এঘটনায় তৎকালীন  দৌলতপুর থানার ওসি ইসাহক আলী বাদী হয়ে করা হত্যা মামলাটি নানা ঘাত-প্রতিঘাত ও বাধা-বিপত্তি পেরিয়ে তদন্ত শেষে জড়িত অভিযোগে ২৯ আসামীর বিরুদ্ধে চার্জ গঠন এবং বিচার কার্যক্রম সম্পন্ন হয় আদালতে। ২০০৪ সালের ৩০ আগষ্ট আদালত ১০ জনের মৃত্যুদন্ড এবং ১২  জনের যাবজ্জীবন কারাদন্ডাদেশ দেন। রায় পরবর্তীতে নিম্ন ও উচ্চ আদালতে সকল বিচারিক বিধি সম্পন্ন করে ২০০৮ সালে শুধুমাত্র ৯জনের মৃত্যুদন্ডাদেশ বহাল রেখে বাকীদের খালাস দেন উচ্চ আদালত। এই ৯ জনের মধ্যে জামিনে থেকে অদ্যবধি ৫জন পলাতক থাকলেও ২০১৬ সালের ৮ জানুয়ারীতে কারান্তরীন ৩আসামীর মৃত্যুদন্ড কার্যকর হয় এবং এরপূর্বে অসুস্থ্য হয়ে কারাগারেই ১আসামীর মৃত্যু হয়। দন্ডপ্রাপ্ত পলাতক আসামীরা হলেন- মান্নান মোল্লা, জালাল উদ্দিন ওরফে বাসার, বাকের, রওশন এবং জীবন।

নিহত জাসদ নেতা এয়াকুব আলী’র ছেলে ইউসুফ আলী রুশো বলেন, মহান মুক্তিযুদ্ধের চেতনার বাস্তব প্রতিফলন ঘটাতে কাজী আরেফ তার জীবদ্দশায় শেষ মুহুর্ত পর্যন্ত যে লড়াই করে গেছেন। মৃত্যুর পর তার রেখে যাওয়া সেই আদর্শ ও চেতনা লালন করতে নানা প্রতিবন্ধকতার মুখে পড়েও এতটুকু বিচ্যুৎ হননি পরিবারের সদস্যরা। যে আদর্শিক চেতনায় তিনি একটা সন্ত্রাস মুক্ত দেশ গড়ার স্বপ্ন দেখার অপরাধে সন্ত্রাসীদের নির্মম হত্যাকান্ডের  শিকার হয়েছিলেন; সেই হত্যাকান্ডের রায় কার্যকর করতে এখনও পলাতক ৫আসামীর গ্রেফতার দাবি করছি; যাতে সন্ত্রাসমুক্ত অসাম্প্রদায়িক বাংলাদেশ প্রতিষ্ঠার স্বপ্ন বাস্তব রূপ পায়।  দন্ডপ্রাপ্ত এসব পলাতক আসমীরা পাশর্^বর্তী ভারতে অবস্থান করেন এবং মাঝে মধ্যেই সীমান্ত পার হয়ে এসে পরিবারের সাথে দেখা করেন এবং নানা অপরাধ সংগঠনের মাধ্যমে অর্থ সংগ্রহ করে আবার ভারতে ফিরে যান বলে অভিযোগ ঘটনার প্রত্যক্ষদর্শী স্বাক্ষী ও আরেফ স্মৃতি সংসদের সভাপতি কারশেদ আলমসহ ক্ষতিগ্রস্ত পরিবার ও নিহত নেতৃবৃন্দের রাজনৈতিক সহযোদ্ধাদের। অবিলম্বে এসব আসামীদের গ্রেফতার ও রায় কর্যকরের দাবি তাদের। কাজী আরেফ’র রণাঙ্গনের সহযোদ্ধা বৃহত্তর কুষ্টিয়ায় স্বাধীন বাংলার প্রথম পতাকা উত্তোলনকারী বীর মুক্তিযোদ্ধা এ্যাড. আব্দুল জলিল বলেন, মুক্তিযুদ্ধের সহযোদ্ধা হিসেবে একজন বজ্রমুষ্ঠি আদর্শের প্রতীক হিসেবে সাথে পেয়ে কুষ্টিয়ার সকল বীরযোদ্ধা গর্ববোধ করতেন। এমন এক সহযোদ্ধাকে হারিয়ে সারা দেশবাসীর ন্যায় কুষ্টিয়াবাসীও ব্যথিত হয়েছেন। জেলাবাসী এই নির্মম হত্যাযজ্ঞের একটা ন্যায় বিচার কামনা করেছিল যা ইতোমধ্যে তিনজন আসামীর দন্ডকার্যকরের মধ্যদিয়ে জেলাবাসীকে আশান্বিত করেছে। সেই সাথে কিছু অপূর্ণতার বেদনাও রয়েছে এই হত্যাকান্ডের মূল পরিকল্পনাকারীরা আজও পর্যন্ত ধরা ছোয়ার বাইরে রয়ে গেছে এবং দন্ডপ্রাপ্ত ৫ আসামী এখনও গ্রেফতার এড়িয়ে চলছেন।

ক্ষতিগ্রস্থ পরিবারদের মাঝে ইউএনও’র ত্রান সহায়তা প্রদান

দৌলতপুরে অগ্নিকান্ডে ৩০ ঘর ভষ্মিভূত : অর্ধ কোটি টাকার ক্ষতি

শরীফুল ইসলাম ॥ কুষ্টিয়ার দৌলতপুরে অগ্নিকান্ড ঘটে ৩০টি ঘর ভষ্মিভূত হয়েছে। আগুনে পুড়ে মারা গেছে ৭টি গবাদি পশু। গতকাল রবিবার দুপুর সোয়া ১টার দিকে উপজেলার রামকৃষ্ণপুর ইউনিয়নের পদ্মারচর লোকনাথপুর গ্রামে অগ্নিকান্ডের এ ঘটনা ঘটেছে। আগুনে কৃষকসহ ১৫টি পরিবারের অর্ধকোটির টাকার সম্পদ ভষ্মিভূত হয়েছে। ক্ষতিগ্রস্থ পরিবার ও এলাকাবাসী জানান, লোকনাথপুর গ্রামের জিন্নাত সর্দারের পাড়ায় ময়ের উদ্দিনের ছেলে রোকনের রান্না ঘরের চুলা থেকে অগ্নিকান্ডের সূত্রপাত হয়। মুহুর্তের মধ্যে আগুন আশপাশের বাড়িতে ছড়িয়ে পড়ে। এলাকাবাসীর চেষ্টায় আগুন নিয়ন্ত্রন হলেও আগুনে পুড়ে ছাই হয়েছে ময়ের উদ্দিন সর্দ্দার, জিন্নাত সর্দার ও তার ছেলে কালু সর্দার, লালু সর্দার এবং প্রতিবেশী মজিবর রহমান, ভাদু সর্দার, বাবু সর্দার, আসমত সর্দার, রহিমা খাতুন, কুলসুম খাতুন, রোকন আলী, মোহর উদ্দিন ও মমিন সর্দারসহ ১৫ জনের অন্তত ৩০টি ঘর। আগুনে পুড়ে মারা গেছে ময়ের উদ্দিনের ৩টি, লালু সর্দারের ১টি, বাবু সর্দারের ২টি ও কুলসুম খাতুনের ১টিসহ মোট ৭টি ছাগল। অগ্নিকান্ডের বিষয়ে রামকৃষ্ণপুর ইউনিয়নের চেয়ারম্যান সিরাজ মন্ডল জানান, লোকনাথপুর গ্রামের জিন্নাত সর্দারের পাড়ায় আগুনে পুড়ে কৃষকসহ ১৫টি পরিবারের অন্তত ৩০টি ঘর, নগদ প্রায় দেড়লক্ষ টাকা, ৭টি ছাগল এবং ঘরের আসবাবপত্র ও খাদ্যশস্যসহ কমপক্ষে অর্ধকোটি টাকার সম্পদ ভষ্মিভূত হয়েছে। অগ্নিকান্ডে ক্ষতিগ্রস্থরা বর্তমানে খোলা আকাশের নীচে রয়েছে। এদিকে অগ্নিকান্ডের খবর পেয়ে দৌলতপুর উপজেলা নির্বাহী অফিসার শারমিন আক্তার ও দৌলতপুর সহকারী কমিশনার (ভূমি) মো. আজগর আলী গতকাল বিকেলে ঘটনাস্থলে গিয়ে তাৎক্ষনিকভাবে ক্ষতিগ্রস্থ প্রতি পরিবারকে ৩টি করে কম্বল, ২০ কেজি চাল, ২ কেজি ডাল ও ১ কেজি লবন প্রদান করেছেন। দৌলতপুর উপজেলা নির্বাহী অফিসার শারমিন আক্তার বলেন, অগ্নিকান্ডে ক্ষতিগ্রস্থ পরিবারগুলোকে তাৎক্ষনিকভাবে কম্বল, চাল, ডাল ও লবণ প্রদান করা হয়েছে। তাদের মাঝে এমপি মহোদয়ের পক্ষ থেকে টিন ও ডিসি স্যারের পক্ষ থেকে আরও সহযোগিতা প্রদান করা হবে।

মিরপুরে বীর মুক্তিযোদ্ধা লোকমান হোসেনসহ ৫ জাসদ নেতার মৃত্যু বার্ষিকীতে স্মরন সভা

আমলা অফিস ॥ কুষ্টিয়ার মিরপুরে সাবেক জেলা জাসদের সভাপতি বীর মুক্তিযোদ্ধা লোকমান হোসেন, জাসদের শীর্ষ নেতা কাজী আরেফ আহম্মেদসহ জাসদের ৫ নেতার মৃত্যুবার্ষিকী উপলক্ষে এক স্মরণসভা অনুষ্ঠিত হয়েছে। গতকাল রোবাবার বিকেলে উপজেলার তালবাড়ীয়া এলাকায় লোকমান হোসেন ফাউন্ডেশনের উদ্যোগে এ স্মরণসভা অনুষ্ঠিত হয়। এতে লোকমান হোসেন ফাউন্ডেশনের সভাপতি নিজাম উদ্দিন কবিরাজের সভাপতিত্বে বক্তব্য রাখেন কুষ্টিয়া জেলা আইনজীবী সমিতির সভাপতি ও কুষ্টিয়া জেলার পাবলিক প্রসিকিউটর (পিপি) এ্যাড অনুপ কুমার নন্দী। লোকমান হোসেন ফাউন্ডেশনের সাধারন সম্পাদক এ্যাড. আল মুজাহিদ হোসেন মিঠুর পরিচালনায় আরো বক্তব্য রাখেন কুষ্টিয়া জেলা আইনজীবী সমিতির সাধারন সম্পাদক এ্যাড শেখ আবু সাঈদ, মারফত আলী মাষ্টার, কুষ্টিয়া জেলা জাসদ (রব) সভাপতি মিজানুর রহমান মির্জা, কুষ্টিয়া জেলা জাসদ (রব) সাধারন সম্পাদক মফিজুল ইসলাম, কুষ্টিয়া জেলা জাসদ (শরিফ আম্বীয়া) সাধারন সম্পাদক এটিএম আবুল মনসুর মজনু, বীর মুক্তিযোদ্ধা আফতাব উদ্দিন খান, বীরমুক্তিযোদ্ধা এনামুল হক বিশ্বাস, তালবাড়ীয়া ইউনিয়ন আওয়ামীলীগের সভাপতি ও  চেয়ারম্যান আব্দুল হান্নান মন্ডল, তালবাড়ীয়া ইউনিয়ন আওয়ামীলীগের সাধারন সম্পাদক তৌসিফ আহমেদ সোহান, কুষ্টিয়া জেলা আইনজীবী সমিতির দপ্তর সম্পাদক এ্যাড. আবুল হাসিম, এ্যাড তোফাজ্জেল হোসেন, লোকমান হোসেন ফাউন্ডেশনের কোষাধ্যক্ষ আশরাফুল ইসলাম, নির্বাহী সদস্য এ্যাড.  সোহেলী পারভীন ঝুমুর, সেকেন্দার আলী কবিরাজ, খন্দকার ফরিদ প্রমুখ। অনুষ্ঠানে মেধাবী ছাত্র/ছাত্রীদের উপবৃত্তি প্রদান করা হয়। উল্লেখ্য ১৯৯৯সালের ১৬ ফেব্র“য়ারি দৌলতপুর উপজেলার কালিদাসপুর প্রাইমারী স্কুল মাঠে সন্ত্রাস বিরোধী জনসভায় সন্ত্রাসীদের ব্রাশ ফায়ারে নিমর্মভাবে নিহত হন জাতীয় নেতা কাজী আরেফ আহমেদ, তৎকালিন  জেলা জাসদের সভাপতি লোকমান হোসেন, সাধারন সম্পাদক এ্যাড. ইয়াকুব আলী, শমশের আলী ও তপসের মন্ডল।

 

১৮ ফেব্রয়ারি কুষ্টিয়া লাহিনীপাড়ায় সাধুসঙ্গ

কুষ্টিয়া কুমারখালী উপজেলার লাহিনীপাড়া গ্রামে লালন শিল্পী টুটুল ভেঁড়ো প্রতিষ্ঠিত করেছেন বাউল ফকিরদের আশ্রমাগার “একতারা ভাবাশ্রম”। এ ভাবাশ্রমের আয়োজনে আগামী ১৮ ফেব্র“য়ারি  আশ্রম চত্বরে সাধুসঙ্গ অনুষ্ঠিত হবে। এখানে দেশের বিভিন্ন এলাকা থেকে সাধুগুরুদের আগমণ ঘটবে। সেদিন বাদ এশা থেকে লালন সংগিতে আয়োজন করা হয়েছে। এ বিষয়ে টুটুল ভেঁড়ো বলেন, আমার দীর্ঘদিনের স্বপ্ন ছিল বাউল ফকিরদের আশ্রমাগার প্রতিষ্ঠা করার। সে স্বপ্ন আজ বাস্তবায়ন হয়েছে। তিনি বলেন, এ আশ্রম সাধুগুরুদের জন্য উন্মুক্ত থাকবে। এখানে নিয়মিত লালন সংগিত চর্চা করা হবে। সাধুসঙ্গের অনুষ্ঠানে তিনি সকলে আমন্ত্রণ জানান।

খোকসায় বৈদেশিক কর্মসংস্থানের জন্য দক্ষতা ও সচেতনতা শীর্ষক প্রচার, প্রেসব্রিফিং ও সেমিনার       

খোকসা প্রতিনিধি ॥ কুষ্টিয়ার খোকসায় বৈদেশিক কর্মসংস্থানের জন্য দক্ষতা ও সচেতনতা শীর্ষক প্রচার, প্রেসব্রিফিং ও সেমিনার  অনুষ্ঠিত হয়েছে। গতকাল রবিবার সকালে উপজেলা পরিষদ হলরুমে উপজেলা প্রশাসনের আয়োজনে সেমিনারে সভাপতিত্ব করেন উপজেলা নির্বাহী অফিসার মৌসুমী জেরিন কান্তা। প্রধান অতিথি ছিলেন কুষ্টিয়া-৪ (খোকসা-কুমারখালি) আসনের সংসদ সদস্য ব্যরিষ্টার সেলিম আলতাফ জর্জ। এ সময় উপস্থিত ছিলেন কুষ্টিয়া টিটিসি অধ্যক্ষ আকতারুজ্জামান, উপজেলা আওয়ামীলীগের সভাপতি ও বেতবাড়ীয়া ইউনিয়ন চেয়ারম্যান বাবুল আখতার, টিটিসি চীফ ইনন্ট্রটর কল্লোর কুমার ঘোষ, ওসি তদন্ত ইদ্রিস আলী, মাধ্যমিক শিক্ষা অফিসার নাজমুল হক, সহকারী মাধ্যমিক শিক্ষা অফিসার মোস্তাফিজুর রহমার, জব প্লেসমেন্ট অফিসার তরিকুল ইসলাম, খোকসা-জানিপুর সরকারী মাধ্যমিক বিদ্যালয় প্রধান শিক্ষক মোহাম্মদ আলী, শোমসপুর মাধ্যমিক বিদ্যালয়ের প্রধান শিক্ষক আয়েন উদ্দিন প্রমুখ। এ ছাড়াও উপজেলা বিভিন্ন দপ্তরের কর্মকর্তাা, জনপ্রতিনিধি, শিক্ষা প্রতিষ্ঠানের প্রধান, সুধী, সাংবাদিকগন উপস্থিত ছিলেন। সভায় বৈদেশিক কর্মসংস্থানের জন্য দক্ষতা ও সচেতনতা শীর্ষক বিভিন্ন দিক তুলে ধরে আলোচনা করা হয়।

কুষ্টিয়া পৌরসভার ৫নং ওয়ার্ডের এরশাদ নগর বস্তির রাস্তা ও ড্র্রেণ নির্মাণ কাজের উদ্বোধন করলেন মেয়র আনোয়ার আলী

গতকাল রবিবার সকালে কুষ্টিয়া পৌরসভার ৫নং ওয়ার্ডের এরশাদ নগর বস্তির রাস্তা ও ড্রেণ নির্মাণ কাজের উদ্বোধন করলেন কুষ্টিয়া পৌরসভার জননন্দিত মেয়র আনোয়ার আলী। উদ্বোধনকালে মেয়র আনোয়ার আলী বলেন- বাংলাদেশ সরকার, এডিবি এবং এফআইসি সহায়তাপুষ্ট তৃতীয় নগর পরিচালন ও অবকাঠামো উন্নতি করণ (সেক্টর) প্রকল্পের আওতায় বেসিক সার্ভিস টু দি আরবান পুয়র খাতে বস্তি উন্নয়ন কমিটি (সিচ) এর মাধ্যমে কুষ্টিয়া পৌরসভার বাস্তবায়নে এই অঞ্চলে ৫০৮.৫ মিটার আরসিসি রাস্তা, ৪৬০ মিটার ড্রেন, ১৩ টি হাত টিউবয়েল ও ১৫টি টয়লেট নির্মান করা হবে। তিনি আরো বলেন, পৌর এলাকায় ২১ টি ওয়ার্ডে ৪১ টি সিডির মাধ্যমে নারীর সহিংসতা প্রতিরোধে ও নারীর ক্ষমতায়ন বৃদ্ধি এবং অবকাঠামো উন্নয়নসহ দারিদ্র দুরিকরনের জন্য হাতের কাজ শেখানোর পাশাপাশি ব্যবসা অনুদান, দারিদ্র ও মেধাবী ছাত্র-ছাত্রীদের শিক্ষাবৃত্তি এবং মায়েদের পুষ্টি সহায়তা প্রদান করা হচ্ছে। মেয়র মায়েদের উদ্দেশ্যে বলেন, আপনার ছেলে-মেয়েরা যদি মেধাবি হয় তাহলে তাদের লেখাপড়ার খরচের যোগান দিবো আমি। আর যদি মেধাবী না হয় তাহলে লেখাপড়ার পাশাপাশি হাতের কাজ শেখানোর পরামর্শ দেন। মেয়র আরোও বলেন, ২১টি ওয়ার্ডে আরো নতুন সিডিসি গঠন করা হচ্ছে। প্রতিটি ওয়ার্ডে চাহিদা অনুযায়ী পর্যায়ক্রমে অবকাঠামো নির্মাণ করা হবে। আপনাদের সহযোগীতায়  পৌরবাসীর সকল নাগরিক সেবা প্রদানের জন্য কাজ করে যাচ্ছি। উল্লেখ্য, কুষ্টিয়া পৌরসভার মেয়র আনোয়ার আলী ৫নং ওয়ার্ডে এরশাদ নগর বস্তিতে পৌছালে স্থানীয় বাসিন্দা তাকে ফুলেল শুভেচ্ছা জানান। পরে স্থানীয়দের সাথে এলাকার বিভিন্ন সমস্যা ও উন্নয়নমূলক কাজের বিষয়ে মতবিনিময় করেন। এসময় উপস্থিত ছিলেন কাউন্সিলর সাইফ-উল-হক মুরাদ, সংরক্ষিত কাউন্সিলর নুরজাহান, নির্বাহী প্রকৌশলী রবিউল ইসলাম, বস্তি উন্নয়ন কর্মকর্তা একেএম মঞ্জুরুল ইসলাম সহ এই প্রকল্পের কর্মকর্তা-কর্মচারী ও স্থানীয় গন্যমান্য ব্যক্তিবর্গ। সংবাদ বিজ্ঞপ্তি

প্যারোল পেতে খালেদা জিয়াকে দরখাস্ত করতে হবে – আইনমন্ত্রী

ঢাকা অফিস ॥ খালেদা জিয়ার প্যারোলের মুক্তির বিষয়ে আইনমন্ত্রী আনিসুল হক বলেছেন, প্যারোলে মুক্তির বিষয়ে সুনির্দিষ্ট আইন আছে এবং সেখানে পরিষ্কারভাবে বলা আছে এ পদ্ধতিতে মুক্তির জন্য কোথায়, কীভাবে দরখাস্ত করতে হবে। তিনি বলেন, প্যারোলে মুক্তির বিষয়টি প্রফেশনাল করতে গেলে আইনি প্রক্রিয়া মেনে চলতে হবে। তাই প্যারোলে মুক্তির দরখাস্ত এবং সব নিয়মকানুন মানার পরই সরকার এ বিষয়ে চিন্তা-ভাবনা করতে পারে। যতক্ষণ পর্যন্ত দরখাস্ত বা এরকম কিছু পাওয়া না যাবে ততক্ষণ হাওয়ার ওপরে কথা বলার প্রয়োজন নেই। গতকাল রোববার রাজধানীর সোনারগাঁও হোটেলে বাংলাদেশের নাগরিক সমাজ সংস্থাগুলোর জন্য প্রণীত আইনবিষয়ক ম্যানুয়ালের মোড়ক উন্মোচন অনুষ্ঠানে সাংবাদিকদের প্রশ্নের জবাবে এ সব কথা বলেন তিনি। আন্তর্জাতিক অলাভজনক আইনকেন্দ্র (আইসিএনএল) অনুষ্ঠানের আয়োজন করে। অনুষ্ঠানের সমন্বয়ক ও সঞ্চালক ছিলেন শারমিন খান। অনুষ্ঠানে বিশেষ অতিথির বক্তৃতা করেন ঢাকায় নিযুক্ত মার্কিন রাষ্ট্রদূত আর্ল রবার্ট মিলার ও বাংলাদেশে ডিএফআইডির সিনিয়র গভার্নেন্স অ্যাডভাইজার ও গভার্নেন্স টিম লিডার আইসলিন বাকের। অনুষ্ঠানের প্যানেল আলোচক ছিলেন টিআইবির নির্বাহী পরিচালক ড. ইফতেখারুজ্জামান, পরিবেশ আইনবিদ সমিতির (বেলা) প্রধান নির্বাহী সৈয়দা রিজওয়ানা হাসান, এনজিও বিষয়ক ব্যুরোর মহাপরিচালক কে এম আবদুস সালাম ও জাতীয় সংসদের সংরক্ষিত আসনের সদস্য আরমা দত্ত।

কুষ্টিয়ায় প্রতিবন্ধীদের অধিকার ও সুরক্ষা আইন-২০১৩ বাস্তবায়নের লক্ষ্যে ইপিডি প্রকল্পের সমাপণী অনুষ্ঠান

নিজ সংবাদ ॥ কুষ্টিয়ায় প্রতিবন্ধী ব্যক্তিদের অধিকার ও সুরক্ষা আইন-২০১৩ বাস্তবায়নে বিষয় ভিত্তিক দাবি তুলে ধরে ইপিডি প্রকল্পের সমাপণী অনুষ্ঠানের আয়োজন করে ‘কম্পন’ জেলা প্রতিবন্ধী ফেডারেশন। গতকাল সোমবার সকাল ১০টার সময় কুষ্টিয়া সদর উপজেলা পরিষদ হলরুমে কম্পন জেলা প্রতিবন্ধী  ফেডারেশনের সভাপতি জেদ আলীর সভাপতিত্বে ইপিডি প্রকল্পের সমাপণী অনুষ্ঠান অনুষ্ঠিত হয়। ইপিডি প্রকল্পের সমাপণী অনুষ্ঠানে স্বাগত বক্তব্য রাখেন কম্পন জেলা প্রতিবন্ধী ফেডারেশনের সাধারন সম্পাদক স্বপন আহম্মেদ। ইপিডি প্রকল্পের সমাপণী অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথি ছিলেন কুষ্টিয়া সদর উপজেলা পরিষদের চেয়ারম্যান মোঃ আতাউর রহমান আতা। বিশেষ অতিথি ছিলেন কুষ্টিয়া সদর উপজেলা সমাজ সেবা কর্মকর্তা আবু রায়হান, কুষ্টিয়া সদর উপজেলা আওয়ামী লীগের সাধারন সম্পাদক রেজাউল হক, হাটশহরিপুর ইউনিয়নের চেয়ারম্যান সম্পা মাহমুদ, কুষ্টিয়া সদর উপজেলা পরিষদের ভাইস চেয়ারম্যান শাহনাজ পারভীন, ব্লাস্টের প্রজেক্ট কোঅর্ডিনেটর শ্রাবন্তী মুখার্জী, দিশা সংস্থার সহকারী নির্বাহী পরিচালক এম আর ইসলাম, নিকুশিমাজ সংস্থার নির্বাহী পরিচালক সালমা সুলতানা। এ ছাড়াও ইপিডি প্রকল্পের সমাপণী অনুষ্ঠানে বক্তব্য রাখেন, দৈনিক সমকাল ও ডিবিসি টিভির কুষ্টিয়া জেলা প্রতিনিধি সাজ্জাদ রানা, দৈনিক মাটির পৃথিবী পত্রিকার প্রকাশক ও সম্পাদক এম.এ.জিহাদ, কুষ্টিয়া পৌরসভার ১৮নং ওয়ার্ড কাউন্সিলর জালাল উদ্দিন, জাতীয় তৃণমুল প্রতিবন্ধী ফেডারেশনের সাবেক সভাপতি আক্তার হোসেন, জাতীয় তৃণমুল প্রতিবন্ধী সংস্থার অর্থ ও কর্মসংস্থার সম্পাদক জাকির হোসেন প্রমুখ। প্রতিবন্ধী ব্যক্তিদের অধিকার ও সুরক্ষা আইন-২০১৩ বাস্তবায়নের ক্ষেত্রে নানা প্রতিবন্ধকতা ও বিচ্যুতির বিষয় তুলে ধরে প্রধান অতিথি উপজেলা চেয়ারম্যান আতাউর রহমান আতা বলেন- আজ এ অনুষ্ঠানে এসে জানতে পারলাম কুষ্টিয়া জেলায় ৩৬ হাজার প্রতিবন্ধী আছে। যা দেশের মধ্যে যে কোন জেলার থেকে অনেক বেশী। তিনি বলেন, প্রতিবন্ধীরা আমাদেরই ভাই,বোন, আত্মীয়-স্বজন। এরা আমাদের কাছে করুনা চায় না, এরা আমাদের কাছে সহযোগিতা চায়। প্রতিবন্ধী ব্যক্তিদের উন্নয়নের মুলস্রোত ধারায় সম্পৃক্ত করতে হবে। আমাদের সহযোগিতা পেলে প্রতিবন্ধী ব্যক্তিরা তাদের যোগ্যতা, মেধা ও দক্ষতা কাজে লাগিয়ে সমাজ ও দেশকে উন্নয়নের পথে এগিয়ে নিতে অবদান রাখবে। প্রতিবন্ধী ব্যাক্তিদের দাবীর প্রেক্ষিতে প্রধান অতিথি বলেন, কম্পন জেলা প্রতিবন্ধী ফেডারেশনের অন্তর্ভক্ত  প্রতিবন্ধীদের বসার জন্য কোন অফিস নেই। এটা সত্যই দুঃখ জনক। তিনি বলেন, আপনারা জায়গা ঠিক করুন, আমি  আমাদের অফিস নির্মান করে দিব (আধা পাকা)। তিনি আরও বলেন, এ বছর সদর উপজেলাতে আমি ১০০টি হুইল চেয়ার বিতরন করেছি। প্রয়োজনে আরও দিব। প্রতিবন্ধী ব্যক্তিদের উদ্দেশে বলেন, আপনাদের কোন দাবী থাকলে তা সংশ্লিষ্ট দপ্তরে জানাতে হবে। আমি চাই প্রতিবন্ধীরা স্বাবলম্বি হউক। ইপিডি প্রকল্পের সমাপণী অনুষ্ঠানে বক্তারা বলেন, প্রতিবন্ধী জনগোষ্ঠির জীবনমানের উন্নয়ন এবং তাদের সার্বিক কল্যাণের লক্ষ্যে প্রতিবন্ধী ব্যক্তিদের অধিকার ও সুরক্ষা আইন-২০১৩ বাস্তবায়নে দ্রুত কার্যকরী পদক্ষেপ গ্রহন করতে হবে। ছয়টি অনুচ্ছেদ সম্বলিত নীতিমালাটি কার্যকর হলে প্রতিবন্ধীদের প্রতি প্রধানমন্ত্রীর সহমর্মিতার আরেক ধাপ অগ্রগতি সাধিত হবে। এই নীতিমালা বাস্তবায়ন হলে এদেশের সংবিধানের সর্বোচ্চ ঘোষনা সবার সমনাধিকার, মানবসত্তার মর্যাদা মৌলিক মানবাধিতার ও সামাজিক সাম্যাধিকার সত্যিকার অর্থে প্রতিষ্ঠিত হবে। প্রতিবন্ধী ব্যক্তিদের অধিকার ও সুরক্ষা আইন-২০১৩ বাস্তবায়নের ক্ষেত্রে নানা প্রতিবন্ধকতা ও বিচ্যুতির বিষয় তুলে ধরে সেগুলি নিরসনে রাষ্ট্রের সংশ্লিষ্ট মহল ও সমাজের সর্বস্তরের মানুষের আন্তরিক দৃষ্টিভঙ্গিসহ এগিয়ে আসার আহ্বান জানান বক্তারা। এসময় অনুষ্ঠানে উপস্থিত  থেকে বিভিন্ন ইলেক্ট্রনিক্স ও প্রিন্ট মিডিয়ার গণমাধ্যমকর্মীরা উম্মুক্ত আলোচনায় অংশগ্রহন করেন। অনুষ্ঠানটি পরিচালনা করেন ‘কম্পন’ জেলা প্রতিবন্ধী ফেডারেশন প্রতিষ্ঠার অন্যতম সংগঠক আব্দুর রাজ্জাক। অনুষ্ঠানে  প্রতিবন্ধী ব্যক্তিদের এক বছরের কার্যক্রম পাওয়ার পয়েন্টের মাধ্যমের উপস্থাপন করেন, কুষ্টিয়া নারী পরিষদের নেত্রী রোকেয়া সুলতানা ময়না।

শিক্ষা সহায়তা ট্রাস্টের উপদেষ্টা কমিটির ৬ষ্ঠ বৈঠকে প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা

কারিগরি ও বৃত্তিমূলক প্রশিক্ষণে আরও অর্থ বরাদ্দ করা হবে

ঢাকা অফিস ॥ প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা দক্ষ এবং যোগ্যতা সম্পন্ন প্রজন্ম গড়ে তোলায় প্রধানমন্ত্রীর শিক্ষা সহায়তা ট্রাস্ট থেকে কারিগরি ও বৃত্তিমূলক প্রশিক্ষণের জন্য আরও বেশি অর্থ বরাদ্দের প্রয়োজনীয়তার ওপর গুরুত্বারোপ করেছেন। যাতে তারা চাকরির পেছনে না গিয়ে নিজেরা উদ্যোক্তা হতে পারে। প্রধানমন্ত্রী বলেন, যুব সমাজকে দক্ষ এবং যোগ্যতা সম্পন্ন করে তোলার লক্ষ্যে ট্রাস্টের কাছ থেকে কারিগরি ও বৃত্তিমূলক শিক্ষা প্রতিষ্ঠানের শিক্ষার্থীদের আরও বেশি অর্থ বরাদ্দ করা হবে, কারণ যাতে করে তারা চাকরির পেছনে না গিয়ে উদ্যোক্তা হতে পারে।’ প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা গতকাল রোববার সকালে তাঁর তেজগাঁওস্থ কার্যালয়ে (পিএমও) প্রধানমন্ত্রীর শিক্ষা সহায়তা ট্রাস্টের উপদেষ্টা কমিটির ৬ষ্ঠ বৈঠকে একথা বলেন। ট্রাষ্টের প্রধান পৃষ্ঠপোষক শেখ হাসিনা বলেন, ‘চাকরির পেছনে ছোটার যে আমাদের মানসিকতা সেটার পরিবর্তন করতে হবে।’ তিনি যুব সমাজকে চাকরি করার চাইতে চাকরি দেয়ায় মনযোগী হওয়ারও আহবান জানান। এ প্রসঙ্গে তিনি বলেন, ‘আমরা মেধাবী কিন্তু দরিদ্র শিক্ষার্থীদের স্বাবলম্বী করে তোলার সঙ্গে সঙ্গে তাদের পরিবারকে আরও উন্নত করতে শিক্ষাগত সহায়তা প্রদানের জন্য এই ট্রাস্ট গঠন করেছি।’ উচ্চশিক্ষার জন্য মেডিকেল, প্রকৌশল এবং সাধারণ বিশ্ববিদ্যালয়ে ভর্তিতে আর্থিক সমস্যায় পড়া দরিদ্র শিক্ষার্থীদের বৈঠকের আগে শিক্ষাগত সহায়তা দেয়ার প্রস্তাব করার সময় প্রধানমন্ত্রী এই কথা বলেন। তিনি গণহারে শিক্ষার্থীদের শিক্ষা সহায়তা দেয়ার বিষয়ে দ্বিমত ব্যক্ত করে বলেন, তাঁরা যেন সরকারী ভর্তুকির ওপর নির্ভরশীল হয়ে না পড়ে। উপবৃত্তি সংক্রান্ত তথ্য আপডেট করার প্রয়োজনীয়তার ওপর গুরুত্বারোপ করে তিনি সংশ্লিষ্ট মন্ত্রণালয়ের কর্মকর্তাদের এ বিষয়ে দায়িত্ব প্রদানের নির্দেশনাও প্রদান করেন। এমফিল ও পিএইচডি শিক্ষার্থীদের আর্থিক সহায়তা দেয়ার জন্য সীড মানি হিসেবে আরো পাঁচ কোটি টাকা বরাদ্দের প্রস্তাবে তিনি সম্মতি দেন। এর আগেও সরকার এ লক্ষ্যে পাঁচ কোটি টাকা প্রদান করেছে। শিক্ষা প্রতিষ্ঠানে আসন সক্ষমতা অনুযায়ী ভর্তির জন্য প্রধানমন্ত্রী কার্যকর ব্যবস্থা গ্রহণ করতে সংশ্লিষ্টদের পরামর্শ দেন। তিনি বলেন, ‘আমি বুঝতে পারিনা যে, শিক্ষার্থীরা কিভাবে অতিরিক্ত শিক্ষার্থীপূর্ণ শ্রেণীকক্ষে পড়াশোনা করছে।’ অর্থের অভাবে শিক্ষার সুযোগ বঞ্চিত দরিদ্র ও মেধাবী শিক্ষার্থীদের বৃত্তি প্রদানের লক্ষ্যে ২০১২ সালে প্রধানমন্ত্রীর শিক্ষা সহায়তা ট্রাস্ট গঠন করা হয়। ২০১১-১২ অর্থ বছরে ট্রাষ্টের সীড মানি হিসেবে এক হাজার কোটি টাকা প্রদান করা হয়। ২০১৩ সাল থেকে এ পর্যন্ত ট্রাস্ট থেকে দরিদ্র মেধাবী শিক্ষার্থীদের উপবৃত্তি ও আর্থিক সহায়তার জন্য ইতোমধ্যে ৫৫০ দশমিক ৯০ কোটি টাকা বিতরণ করা হয়েছে। ট্রাস্ট এ বছর বেসরকারী শিক্ষা প্রতিষ্ঠানের ২, ০৯, ৬০০ জন দরিদ্র শিক্ষার্থীদের মধ্যে ১১১ দশমিক ৪০ কোটির অধিক অর্থ বিতরণের সিদ্ধান্ত নিয়েছে। ট্রাস্টের উপদেষ্টা পরিষদ সদস্য- অর্থমন্ত্রী আ হ ম মুস্তফা কামাল, শিক্ষামন্ত্রী ডা. দীপু মনি, পরিকল্পনামন্ত্রী এম.এ. মান্নান এবং প্রাথমিক ও গণশিক্ষা প্রতিমন্ত্রী মোহাম্মাদ জাকির হোসেন বৈঠকে উপস্থিত ছিলেন। শিক্ষা উপমন্ত্রী মহিবুল হাসান চৌধুরী, প্রধানমন্ত্রীর মুখ্য সচিব ড.আহমদ কায়কাউস, অর্থ সচিব আব্দুর রউফ তালুকদার, পিএমও সচিব তোফাজ্জল হোসেন মিয়া, প্রেস সচিব ইহসানুল করিম, ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের ভাইস চ্যান্সেলর ড. মো. আখতারুজ্জামান, ইউজিসি চেয়ারম্যান (বিশ্ববিদ্যালয় মঞ্জুরী কমিশন) অধ্যাপক কাজী শহীদুল্লাহ, বাংলাদেশ এ্যাসোসিয়েশন অব ব্যাংকস (বিএবি) চেয়ারম্যান নজরুল ইসলাম অন্যান্যের মধ্যে এ সময় উপস্থিত ছিলেন। ট্রাষ্টের ব্যবস্থাপনা পরিচালক অতিরিক্ত সচিব নাসরিন আফরোজ ট্রাষ্টের সার্বিক কর্মকান্ড এবং ভবিষ্যত করণীয় বিষয়ে বৈঠকে একটি উপস্থাপনা প্রদান করেন।