হানেমা ফাউন্ডেশনের বৃত্তি প্রকল্পের ফলাফল প্রকাশ

চুয়াডাঙ্গা জেলার আলমডাঙ্গা উপজেলার পারকুলা স্কলাল এর আওতায়  আজ হানেমা ফাউন্ডেশনের বৃত্তি প্রকল্পের ফলাফল প্রকাশ কার হয়েছে।  ট্যালেন্টপুলে বৃত্তি প্রাপ্তরা হলেন, ১০৫০,১০৫২,১০০২,২১০৯,২০১১,২০৯৮,৩০৭২,৩০০১,৪০০২,৪০৯২,৪০৮৩,৫০৯৭,৫০৭৬,৬০৯১,৬০১৬,৭০৫৫,৮০৩৪ ও ৯০৪২  মোট ১৮জন। প্রথম গ্রেড ১০৫৩,১০০৮,১০৪৯,২০৮০,২১২৯,২০০১,২০৮৩,৩০৪৩,৩১০৬,৩০৭৯,৪০০৯,৪০৮৪,৪০৯৩,৫০৭৪,৫০০৪,৫১১৮,৬০৯২,৬০৩৬,৬০৩৩,৭০৫২,৮০১৬ ও ৯০৩৩= ২২জন।

সাধারন গ্রেড ১০১০,১০১৯,১০২০,১০৭০,১০৮৫,১০৭৩,২১১০,২০৯৬,২০৬৫,২০২৪,২০৩৬,২০১৮,২০৬৪,২১৪১,৩০৫২,৩০০৪,৩০৫৭,৩০১৬,৪০৪২,৪০৭৫,৪০৬৯,৪০৬৪,৪০৫০,৫০৬৭,৫০২০,৫০৫৭,৫০৮০,৫০৯০,৬০৪১,৬০৭৯,৬০৩৫,৬০৬৬,৬০৭৬,৭০১২,৭০০১,৮০২৪,৮০৪০,৯০২১,৯০১০ ও ৯০১৯= ৪০ জন। হানেমা ফাউন্ডেশনের বৃত্তি প্রকল্পের চেয়ারম্যান প্রফেসর ডাক্টর মুহাঃ আব্দুস শহিদ পারকুলা মডেল স্কালার স্কুলে অফিসরুমে বৃত্তিফল প্রকাশ করেন।

গাংনীতে মরহুম সাহাবুদ্দীনের স্মরণে মিলাদ-মাহফিল

গাংনী প্রতিনিধি ॥ যুবলীগ নেতা ও মেহেরপুরের গাংনী উপজেলা পরিষদের মহিলা ভাইস চেয়ারম্যান ফারহানা ইয়াসমিনের স্বামী মরহুম সাহাবুদ্দীনের স্মরণে দোয়া ও মিলাদ-মাহফিল অনুষ্ঠিত হয়েছে। গতকাল শুক্রবার দুপুরে সাহাবুদ্দীনের গাংনী উপজেলা শহরের চৌগাছাস্থ বাসভবন চত্বরে দোয়া ও মিলাদ-মাহফিলের আয়োজন করে তার পরিবার। দোয়া ও মিলাদ-মাহফিল পরিচালনা করেন গাংনী দারুচ্ছালাম জামে মসজিদের ঈমাম মোহাম্মদ রুহুল আমীন। দোয়া ও মিলাদ-মাহফিলের পূর্বে সাহাবুদ্দীন স্মরণে আলোচনা সভা অনুষ্ঠিত হয়। সভায় সাহাবুদ্দীনের কর্মময় সংক্ষিপ্ত জীবনী নিয়ে বক্তব্য রাখেন গাংনী উপজেলা পরিষদের চেয়ারম্যান ও মেহেরপুর জেলা আ.লীগের সাধারণ সম্পাদক এমএ খালেক। এসময় উপস্থিত ছিলেন মেহেরপুর-২ (গাংনী) আসনের সাবেক সংসদ সদস্য বীর মুক্তিযোদ্ধা মকবুল হোসেন,গাংনী উপজেলা আ.লীগের সাধারণ সম্পাদক গোলাম মোস্তফা,গাংনী পৌরসভার মেয়র আশরাফুল ইসলাম, মেহেরপুর জেলা পরিষদের সদস্য ও যুবলীগ নেতা মজিরুল ইসলাম,আ.লীগ নেতা শহিদুল ইসলাম, ইয়াসিন রেজা, জেলা পরিষদের সদস্যা ও যুব-মহিলালীগের নেত্রী শাহানা ইসলাম শান্তনা,রাইপুর ইউনিয়ন পরিষদের চেয়ারম্যান গোলাম সাকলায়েন ছেপু,যুবলীগ নেতা আল-ফারুক,মরহুম সাহাবুদ্দীনের সহধর্মীনি ফারহানা ইয়াসমিন,গাংনী উপজেলা যুবলীগের সাধারণ সম্পাদক হাজী মোহাম্মদ শফি কামাল পলাশ,গাংনী পৌর আ.লীগের সভাপতি সানোয়ার হোসেন বাবলু,সাধারণ সম্পাদক আনারুল ইসলাম বাবু,সাবেক ছাত্রলীগ নেতা রবিউল ইসলাম,আব্দুর রকিব মাস্টার,গাংনী মহিলা কলেজপাড়া সরকারী প্রাথমিক বিদ্যালয়ের প্রধান শিক্ষক খোরশেদ আলম, সাবেক ছাত্রনেতা সাইফুজ্জামান শিপু,তৌহিদুর রহমান,বিপ¬ব হোসেন,ছাত্রলীগ নেতা ইমরান হাবীব,হাসিবুজ্জামান হাসিবসহ মুসলিম সম্প্রদায়।

পহেলা ফাল্গুন ও ভালোবাসা দিবস উপলক্ষে ঝিনাইদহের বিনোদন কেন্দ্রগুলোতে উপচে পড়া ভিড়

ঝিনাইদহ প্রতিনিধি ॥ পহেলা ফাল্গুন ও বিশ্ব ভালোবাসা দিবস উপলক্ষে ঝিনাইদহের বিনোদন কেন্দ্রগুলোতে রয়েছে উপচে পড়া ভিড়। খুলনা, রাজশাহী, বরিশাল বিভাগের বিভিন্ন জেলাসহ অন্তত ২৫ টি জেলার বিনোদন প্রেমীরা ঝিনাইদহের পার্কগুলোতে ভীড় করেছেন। সাপ্তাহিক ছুটির দিন হওয়ায় শহরের জোহান ড্রীম ভ্যালী পার্ক, তামান্না ওয়ার্ল ফ্যামেলী পার্কসহ বিভিন্ন বিনোদন কেন্দ্রগুলো যেন পরিণত হয়েছে উৎসবের নগরীতে। কেউ এসেছেন একা আবার কেউবা এসেছেন পরিবার পরিজন নিয়ে। এসেছে বিভিন্ন শিক্ষা প্রতিষ্ঠানের শিক্ষার্থীরা। বেলা বাড়ার সঙ্গে সঙ্গে বেড়েছে কিশোর-কিশোরী, তরুণ-তরুণীদের আনাগোনা। নাগরগোল, হানি সুইং, কেইফ টেন, টেন কোস্টার, জেড কোস্টার, প্রিজবি, পাইরেট শিপসহ বিভিন্ন রাইডে উঠতে পেরে বেশ খুশী সকল দর্শনার্থী। জোহান ড্রীম ভ্যালী পার্কে গিয়ে এ দেখা গেছে, ক্লান্ত বিনোদন প্রেমীরা গাছের ছায়ায় বসে পড়েছেন। অনেকে আবার পার্কের লেক পাড়ে দল বেধে ঘুরছেন। মাদারীপুরের শিবচর উপজেলা থেকে আসা নাঈম নামের দর্শনার্থী জানান, ঝিনাইদহের এই পার্কে এসে সুন্দর পরিবেশ দেখে মন ভরে গেছে। সুশৃঙ্খল পরিবেশে ভালই লাগছে। কুষ্টিয়া সদর উপজেলা থেকে আসা এনামুল হক জানান, ছেলে-মেয়ের আবদার মেটাতে এখানে পরিবারের সদস্যদের নিয়ে আসা। দিনটি সরকারি ছুটি হওয়ায় অফিসের চাপ নেই। পরিবারের লোকজন দিয়ে খুব আনন্দ করছি। জোহান ড্রীম ভ্যালী পার্কের স্বত্তাধাকারী মোয়াজ্জেম হোসেন বলেন, এবছরই একই দিনে বসন্ত বরণ ও ভালোবাসা দিবস। আর সাপ্তাহিক ছুটির দিন হওয়ায় পার্কে আশপাশের ২৫ টি জেলার দর্শনার্থীরা এসেছেন। আমরা চেষ্টা করছি দর্শনার্থীদের সর্বোচ্চ সুবিধা দেওয়ার।

স্বাধীন বাংলার নিউক্লিয়াস কাজী আরেফ হত্যার ২১তম দিবস স্মরণ সভা পরিবর্তিত স্থান বিজয় উল্লাস চত্বর

মহান মুক্তিযুদ্ধের অন্যতম সংগঠক ও স্বাধীন বাংলার পতাকা রূপকার নিউক্লিয়ার সদস্য সন্ত্রাস ও সাম্প্রদায়িকতামুক্ত দেশ গড়ার স্বপ্নদ্রষ্টা জাতীয় সমাজতান্ত্রিক দল জাসদ’র প্রতিষ্ঠাতা সভাপতি কাজী আরেফসহ ৫জাসদ নেতাকে হত্যা দায়ে মৃত্যুদন্ড প্রাপ্ত পলাতক আসামীদের গ্রেফতার ও রায় কার্যকরের দাবিতে নৃশংস এই হত্যাকান্ডের ২১তম দিবস পালিত হচ্ছে আজ। ১৯৯৯ সালের ১৬ ফেব্র“য়ারী সংগঠিত নৃশংস এই হত্যা দিবস স্মরণে কাজী আরেফ স্মৃতি সংসদের আয়োজনে রবিবার বিকেল ৩টায় অনুষ্ঠিতব্য শিশু-কিশোর চিত্রাঙ্কন প্রতিযোগিতা ও আলোচনা সভাটির পূর্ব নির্ধারিত রবীন্দ্র মৈত্রী বিশ^বিদ্যালয়ের উন্মুক্ত মঞ্চের পরিবর্তে কুষ্টিয়া পৌর বিজয় উল্লাস চত্বরে অনুষ্ঠিত হবে বলে নিশ্চিত করেছেন আয়োজক কতৃপক্ষ। ১৯৯৯ সালে ১৬ ফেব্র“য়ারী তৎকালীন সন্ত্রাস কবলিত রক্তাক্ত জনপদ খ্যাত কুষ্টিয়ার দৌলতপুর উপজেলার আড়িয়া ইউনিয়নের কালিদাসপুর সরকারী প্রাথমিক বিদ্যালয় মাঠে এক সন্ত্রাস বিরোধী সমাবেশ চলাকালে প্রকাশ্যে সন্ত্রাসীরা মহান মুক্তিযুদ্ধের এই সংগঠক জাতীয় নেতা কাজী আরেফ আহামেদসহ জেলা জাসদের সভাপতি বীরমুক্তিযুদ্ধা লোকমান হোসেন,সাধারন সম্পাদক উপজেলা পরিষদের চেয়ারম্যান বীর মুক্তিযুদ্ধা এ্যাডঃ ইয়াকুব আলী,স্থানীয় নেতা ইসরাইল হোসেন তফসের ও শমসের মন্ডল মোট ৫জাসদ নেতাকে ব্রাশফায়ারে হত্যাকরে।

আমলার এনএন স্টাইপেন্ড একাডেমি বৃত্তি পরীক্ষার ফল প্রকাশ

আমলা অফিস ॥ কুষ্টিয়ার মিরপুর উপজেলার আমলায় এন.এন.স্টাইপেন্ড একাডেমীর বৃত্তি পরীক্ষার ফলাফল ঘোষনা করা হয়েছে। গতকাল শুক্রবার আমলায় এন.এন.স্টাইপেন্ড একাডেমির অস্থায়ী কার্যালয়ে আনুষ্ঠানিক ভাবে এ ফলাফল ঘোষনা করা হয়। এতে এন.এন স্টাইপেন্ড একাডেমির সভাপতি ও আমলাসদরপুর কিন্ডার গার্টেনের প্রধান শিক্ষক মাসুম আল মাজীর সভাপতিত্বে বক্তব্য রাখেন এন.এন স্টাইপেন্ড একাডেমির সাধারন সম্পাদক রফিকুল ইসলাম, মিরপুর প্রেসক্লাবের সহ-সভাপতি ও এন.এন.স্টাইপেন্ড একাডেমির নির্বাহী সদস্য কাঞ্চন কুমার, এন.এন.স্টাইপেন্ড একাডেমির নির্বাহী সদস্য মনিরুল ইসলাম, মাহাবুব হাসান রাজন, ফজলুর রহমান খোকন, সাইফুল্লাহ আকবর, আব্দুল কুদ্দুস, আবুল কাশেম, তৌহিদুজ্জামান প্রমুখ। গত ২৫ ডিসেম্বর ২৭টি শিক্ষা প্রতিষ্ঠানের ৭৫০জন শিক্ষার্থী এ বৃত্তি পরীক্ষায় অংশ গ্রহণ করে। এর মধ্যে প্রথম শ্রেণিতে ৪৩, দ্বিতীয় শ্রেণিতে ৪৬, তৃতীয় শ্রেণিতে ২৯, চতুর্থ শ্রেণিতে ২৬ এবং পঞ্চম শ্রেণিতে ২৭জন বৃত্তি লাভ করেছে।

বঙ্গবন্ধু আন্তঃবিশবিদ্যালয় এ্যাথলেটিক্স প্রতিযোগিতায় ইবি চ্যাম্পিয়ন

ইবি প্রতিনিধি ॥ রাজশাহী বিশ^বিদ্যালয়ে ১২-১৩ ফেব্র“য়ারি বঙ্গবন্ধু আন্তঃবিশ^বিদ্যালয় এ্যাথলেটিক্স প্রতিযোগিতা অনুষ্ঠিত হয়েছে। এ প্রতিযোগিতায় ৭টি স্বর্ণ ৩টি রোপ্য ও ৫ টি ব্রন্জসহ পয়েন্ট তালিকার শীর্ষে থেকে ইসলামী বিশ্ববিদ্যালয় চ্যাম্পিয়ন হওয়ার গৌরব অর্জন করেছে। ইসলামী বিশ্ববিদ্যালয়ের তামান্না আক্তার ১০০ মিটার হার্ডেলস ইভেন্ট, রিংকি খাতুন লং জাম্প এবং জাফরিন আক্তার ডিসকাস থ্রো রেকর্ডসহ শটপুট থ্রো স্বর্ণপদক জিতে নতুন আন্তঃবিশ্ববিদ্যালয় রেকর্ড সৃষ্টি করেছেন। এছাড়াও উচ্চ লম্পে প্লাবনী হক, ৪০০ মিটার ও ১০০ মিটার রিলেতে প্লবনী হক, দিশা সুলতানা, তামান্না আক্তার ও রিংকি খাতুন এবং  ৪০০ মিটার হার্ডেসে মল্লিক সোহেল রানা স্বর্ণপদক লাভ করেন। টিম ম্যানেজার ছিলেন শারিরীক শিক্ষা বিভাগের পরিচালক ড. মোহাম্মদ সোহেল এবং কোচ ছিলেন উপ-পরিচালক মোঃ আসাদুর রহমান।

সড়ক দুর্ঘটনায় ২ ইবি শিক্ষকসহ ৩৫ শিক্ষার্থী আহত

ইবি প্রতিনিধি ॥ ইসলামী বিশ্ববিদ্যালয়ের (ইবি) ম্যানেজমেন্ট বিভাগের মাস্টার্সের শিক্ষার্থীদের ইন্ডাস্ট্রিয়াল ট্যুর থেকে ফেরার পথে বাস-ট্রাকের মুখোমুখি সংঘর্ষে বিশ্ববিদ্যালয়ের শিক্ষকসহ প্রায় ৩৫ জন শিক্ষার্থী আহত হয়েছেন। বৃহস্পতিবার রাত আনুমানিক দুইটার দিকে কুষ্টিয়া সদর উপজেলার বিত্তিপাড়া কুষ্টিয়া-খুলনা মহাসড়কে এ দুর্ঘটনা ঘটে। আহতদের বিশ্ববিদ্যালয়ের মেডিকেলে প্রাথমিক চিকিৎসা শেষে কুষ্টিয়া সদর হাসপাতালে পাঠানো হয়। জানা গেছে, বুধবার রাতে মোট ৬২ জন শিক্ষক ও শিক্ষার্থীসহ নওগাঁয় ইন্ডাস্ট্রিয়াল ট্যুরের উদ্দেশে যাত্রা করে ২০১৭-১৮ শিক্ষাবর্ষের মাস্টার্সের শিক্ষার্থীরা। শিক্ষার্থী বহনকারী রাজ মটরস নামের ট্যুরের বাসটি কুষ্টিয়া-খুলনা মহাসড়কের বিত্তিপাড়ায় একটি চলন্ত ট্রাকের সাথে মুখোমুখি সংঘর্ষে বাসটি খাদে পড়ে যায়। এতে ম্যানেজমেন্ট বিভাগের শিক্ষক ড. জন শিক্ষক ধনঞ্জয় কুমার ও ড. মুরশিদ আলম আকাশসহ ৩৫ জন শিক্ষার্থী আহত হন। ঘটনার পরপরই বিশ্ববিদ্যালয়ের ভাইস-চ্যান্সেলর প্রফেসর ড. রাশিদ আসকারী, প্রক্টরিয়াল বডি আহত শিক্ষার্থীদের প্রাথমিক চিকিৎসা নিশ্চিত শেষে সকল ব্যয় বিশ্ববিদ্যালয় প্রশাসন বহন করার ঘোষণা দেন। বিশ্ববিদ্যালয়ের মেডিকেলের উপ-প্রধান ডা. পারভেজ হাসান বলেন, চিকিৎসাকেন্দ্রে ম্যানেজমেন্ট বিভাগের আহত শিক্ষক, শিক্ষার্থীদের চিকিৎসা দেয়া হয়েছে। গুরতর আহত ৩/৫ জন শিক্ষার্থীকে কুষ্টিয়া সদর হাসপাতালে পাঠানো হয়েছে।’

খালেদা জিয়ার ‘প্যারোল’ নিয়ে দুই মন্ত্রীর সঙ্গে কথা বলেছেন ওবায়দুল কাদের

ঢাকা অফিস ॥ কারাবন্দি বিএনপি চেয়ারপারসন খালেদা জিয়ার প্যারোলে মুক্তির বিষয়ে সরকারের দুই মন্ত্রীর সঙ্গে কথা বলেছেন আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক ওবায়দুল কাদের। বিএনপির মহাসচিব মির্জা ফখরুল ইসলাম আলমগীরের ফোন পেয়ে তিনি এ বিষয়ে স্বরাষ্ট্র ও আইনমন্ত্রীর সঙ্গে কথা বলেন। শুক্রবার সকালে রাজধানীর ধানমন্ডির আওয়ামী লীগ সভাপতির রাজনৈতিক কার্যালয়ে এক সংবাদ সম্মেলনে ওবায়দুল কাদের এ তথ্য জানান। তবে এ বিষয়ে বিএনপির কোনো লিখিত বক্তব্য তিনি পাননি বলেও জানান ওবায়দুল কাদের। আওয়ামী লীগ সাধারণ সম্পাদক জানান, বিএনপির মহাসচিব মির্জা ফখরুল ইসলাম আলমগীর তাকে ফোন করেছেন। কিন্তু খালেদা জিয়ার প্যারোলে মুক্তির বিষয়ে বিএনপির পক্ষ থেকে লিখিত বক্তব্য তারা পাননি। তাছাড়া কী কারণে খালেদা জিয়াকে প্যারোলে মুক্তি দেয়া যেতে পারে, সে বিষয়ে স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী ও আইনমন্ত্রীর কাছে বিএনপির পক্ষ থেকে কোনো ধরনের লিখিত বক্তব্য যায়নি। খালেদা জিয়ার মুক্তির বিষয়ে স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী ও আইনমন্ত্রীর সঙ্গে কথা হয়েছে আওয়ামী লীগ সাধারণ সম্পাদকের। এমনটি জানিয়ে তিনি বলেন, খালেদা জিয়ার প্যারোলে মুক্তির বিষয়ে আমি স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী ও আইনমন্ত্রীর সঙ্গে কথা বলেছি। এ ব্যাপারে তারা লিখিত কোনো আবেদন পাননি। তারা (বিএনপি) শুধু মুখে মুখেই মুক্তির কথা বলছেন, কিন্তু লিখিত কোনো আবেদন করেননি। এটি দুর্নীতির মামলা। রাজনৈতিক মামলা হলে সরকার বিবেচনা করতে পারত। ওবায়দুল কাদের বলেন, বিএনপি বারবার সরকারের কাছে খালেদা জিয়ার মুক্তি বা প্যারোলে মুক্তি চাচ্ছে, কিন্তু বিষয়টি রাজনৈতিক মামলা নয়। সরকার বিষয়টি তখনই বিবেচনা করতে পারত, যদি সেটি রাজনৈতিক হত। তিনি বলেন, তারা (বিএনপি) প্যারোলের জন্য আবেদন করলে কী কী কারণে প্যারোল চান তা আবেদনে উল্লেখ করতে হবে। সেটি নিয়মের মধ্যে পড়ে কিনা তাও খতিয়ে দেখতে হবে। বিএনপির পক্ষ থেকে যদি প্যারোলে মুক্তির আবেদন করা হয় আপনারা কী পদক্ষেপ নেবেন- এমন প্রশ্নে ওবায়দুল কাদের বলেন, ‘যদির কথা যদি; সেটি পরে দেখা যাবে।’ তিনি বলেন, তারা যদি প্যারোলে মুক্তির আবেদন করে, আবেদনে উল্লেখ করা কারণের সঙ্গে প্যারোলে মুক্তির কারণ মিলে কিনা সেটি কর্তৃপক্ষ দেখবে। জিয়া চ্যারিটেবল ট্রাস্ট মামলায় দন্ডিত হয়ে ২০১৮ সালের ৮ ফেব্র“য়ারি কারাগারে যান বিএনপি চেয়ারপারসন খালেদা জিয়া। এরই মধ্যে তার কারাজীবনের দুই বছর কেটে গেছে। কারাগারে অসুস্থ হয়ে পড়ায় গত বছরের ১ এপ্রিল তাকে বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিব মেডিকেল বিশ্ববিদ্যালয়ে (বিএসএমএমইউ) ভর্তি করা হয়। এখনও তিনি সেখানেই চিকিৎসাধীন। মঙ্গলবার খালেদা জিয়ার ৬ স্বজন তাকে হাসপাতালে দেখে আসেন। বেরিয়ে এসে তারা জানান, খালেদা জিয়ার চিকিৎসার জন্য তারা বিদেশ নিয়ে যেতে চান। এ জন্য প্যারোলে মুক্তি দিলে তাতে তাদের আপত্তি থাকবে না। অবশ্য প্যারোলে মুক্তির বিষয়ে বিএনপি নেতারা দ্বিধাবিভক্ত। ওবায়দুল কাদেরের সংবাদ সম্মেলনে উপস্থিত ছিলেন আওয়ামী লীগের যুগ্ম সাধারণ সম্পাদক আ ফ ম বাহাউদ্দিন নাছিম, সাংগঠনিক সম্পাদক এসএম কামাল হোসেন, অ্যাডভোকেট আফজাল হোসেন, প্রচার ও প্রকাশনা সম্পাদক ড. আবদুস সোবহান গোলাপ, দফতর সম্পাদক ব্যারিস্টার বিপ্লব বড়ুয়া, বিজ্ঞান ও প্রযুক্তিবিষয়ক সম্পাদক প্রকৌশলী আবদুস সবুর, উপদফতর সম্পাদক সায়েম খান প্রমুখ উপস্থিত ছিলেন।

লিটন নামে এক যুবককে পিটিয়ে আহত করে হাসপাতালে ভর্তি করেছে প্রভাবশালী  সাবান মেম্বর গং

নিজ সংবাদ ॥ কুষ্টিয়ার মিরপুর উপজেলার মালিহাদ ইউপির বাজিতপুর গ্রামের যুবলীগের নেতা লিটন(৩৫)কে গতকাল বৃহস্পতিবার বিকেল বেলা তেড়ে ধরে হাতুড়ি দিয়ে পিটিয়ে চরম ভাবে আহত করেছেন প্রভাবশালী সাবান মেম্বারের লোকজন। জানা যায়, প্রভাবশালী সাবান মেম্বর দির্ঘদিন থেকেই উদিওমান  যুবক লিটনকে সামাজিক ভাবে হেয়ই করার জন্য চেষ্টা করে আসছেন। গতকাল বিকেল বেলা সাবান মেম্বারের লোকজন লিটনকে হত্যার উদ্দেশে লিটনের বাড়ী হামলা দেয়। আগাম সংবাদ পেয়ে লিটন বাড়ী থেকে পালালে মাঠ থেকে ধরে এনে হাতুড়ি দিয়ে পিটিয়ে চরমভাবে আহত করে। স্থানীয়রা সংঙ্গাহীন লিটনকে উদ্ধার করে চুয়াডাঙ্গা জেলার আলমডাঙ্গা উপজেলার হারদী হাসপাতামে মুমুর্ষ অবস্থায় ভর্তি করে।

আইলচারায় মাদক প্রতিরোধ কমিটির মতবিনিময় সভা অনুষ্ঠিত

মাদকের বিরুদ্ধে রাখলে দেশ, পথ হারাবে না বাংলাদেশ। নেশামুক্ত পরিবার, হোক আমাদের অঙ্গিকার। এই শ্লোগানকে সামনে রেখে কুষ্টিয়ার আইলচারা ইউনিয়ন মাদক প্রতিরোধ কমিটির আয়োজনে এক মতবিনিময় সভা অনুষ্ঠিত হয়। ইউনিয়ন সভাপতি ডা: হারুন অর রশিদের সভাপতিত্বে প্রধান অতিথি হিসাবে বক্তব্য রাখেন, বাংলাদেশ মাদক প্রতিরোধ কমিটির প্রতিষ্ঠাতা ও সভাপতি হাসিবুর রহমান রিজু। বিশেষ অতিথি হিসাবে বক্তব্য রাখেন, সাফ‘র নির্বাহী পরিচালক ও জেলা বিএমপিসি‘র সহসভাপতি মীর আব্দুর রাজ্জাক, বিএমপিসি জেলা শাখার সাধারণ সম্পাদক এম সোহাগ হাসান, ইঞ্জিনিয়ার অভি মোল্লা, বিএমপিসি’র পোড়াদহ ইউনিয়ন সভাপতি ডা: এমএ করিম, আব্দুল ওয়াহাব মাষ্টার, সাদ আহমেদ, লিটন মেম্বর, আমজাদ আলী, মাওলানা মামুনুর রশিদ। বক্তাগণ বলেন, আমাদের পরিবার, সমাজ ও দেশকে এগিয়ে নিতে টেকসই উন্নয়ন লক্ষ্যমাত্রা অর্জন করতে যুবাদের মাদক নেশা থেকে বিরত রাখতে হবে। যুবারা আগামীর ভবিষ্যৎ। মাদকমুক্ত সমাজ গড়তে সামাজিক আন্দোলন গড়ে তুলতে হবে। যেখানে সরকারের পাশাপাশি সর্বস্তরের মানুষের সমন্বিত সক্রিয় ভূমিকা অপরিহার্য্য। আমাদের উচিত পরিকল্পিত ভাবে প্রতিটি সমাজে পর্যায়ক্রমে ছাত্র-ছাত্রী, যুবা ও অভিভাবক সমাবেশ করা। এক অপরকে দোষ না দিয়ে নিজনিজ দায়িত্ব বোধকে জাগ্রত করতে হবে। নইলে আমরা কেউই এই মরণনেশার ক্ষতিকর প্রভাব থেকে নিজেকে রক্ষা করতে পারবো না। আসুন ভালবাসা দিবসে ভালবাসার মানুষকে নেশামুক্ত রাখি উন্নত জীবনের পথ চলায় অনুপ্রাণিত করি।

সাথী কয়েকটি ফাউন্ডেশন থেকে ট্যালেন্টপুলে বৃত্তি পেয়েছে

মিলন আলী ॥ কুষ্টিয়ার  মিরপুর উপজেলার হালসা বাজারের বিশিষ্ট পল্ট্রি ব্যবসায়ী, সমাজ সেবক শফিকুল ইসলামের কণিষ্ঠকন্যা সাফিয়া সুলতানা সাথী মামলা এন.এন.স্টাইপেড একাডেমি থেকে এবছর মেধা তালিকায় ট্যালেন্টপুলে বৃত্তি পেয়েছেন। হানেমা ফাউন্ডেশনের থেকেও  ট্যালেন্টপুলে বৃত্তি পেয়েছে এবং পোড়াদহের আইলচারা কমলা হারুন ফাউন্ডেশন থেকে প্রথম গ্রেডে বৃত্তি পেয়েছেন মেধাবী মুখ সাফিয়া সুলতানা সাথী। শফিকুল ইসলাম কণিষ্ঠকন্যা সাফিয়া সুলতানা সাথীর অভুতপুর্বক ফলাফলের জন্য সকলের কাছে দোয়া চেয়েছেন।

পুলিশে উপস্থিতিতে ছত্রভঙ্গ

দৌলতপুরে আধিপত্য বিস্তার নিয়ে আওয়ামী লীগের দু’গ্র“পের সশস্ত্র মহড়া

দৌলতপর প্রতিনিধি ॥ কুষ্টিয়ার দৌলতপুরে আধিপত্য বিস্তার নিয়ে আওয়ামী লীগের দু’গ্রুপের সশস্ত্র মহড়ায় আল্লারদর্গা বাজারের ব্যবসায়ীসহ সর্বসাধারণের মাঝে আতংক ছড়িয়ে পড়ে। খবর পেয়ে দৌলতপুর থানা পুলিশ ঘটনাস্থলে উপস্থিত হলে উভয়পক্ষ ছত্রভঙ্গ হয়ে যায়। বৃহস্পতিবার রাত সাড়ে ৯টার দিকে উপজেলার আল্লারদর্গা বাজারে স্থানীয় আওয়ামী লীগ নেতা মাহি ও স্বপন গ্র“পের লোকজন এলাকার আধিপত্য বিস্তার নিয়ে সশস্ত্র অবস্থান নিলে এলাকায় আতংক ও উৎকন্ঠা ছড়িয়ে পড়ে। জানাগেছে, আগামী ইউনিয়ন পরিষদ নির্বাচনে মাহি হোগলবাড়িয়া ইউনিয়ন পরিষদের চেয়ারম্যান প্রার্থী হবে এমন ঘোষনা রয়েছে। তাই যেকোন তুচ্ছ বিষয় বা ঘটনা নিয়ে এলাকায় ঝগড়া বিবাদ ও সশস্ত্র মহড়া চালিয়ে থাকে মাহি। তার এমন কর্মকান্ডে সাবেক এমপি’র সমর্থক ও তার নিকট আত্মীয় স্বপন প্রতিবাদ করলে উভয়ের মধ্যে বিরোধ সৃষ্টি হয়। এরই জের ধরে বৃহস্পতিবার রাতে দুই পক্ষের লোকজন দেশীয় অস্ত্র ও লাঠি সোটা নিয়ে আল্লারদর্গা বাজরে সশস্ত্র অবস্থান নেয়। আওয়ামী লীগের দুই পক্ষের সশস্ত্র মহড়ায় আল্লারদর্গা বাজারে আতংক ছড়িয়ে পড়ার খবর পেয়ে দৌলতপুর থানার ওসি এস এম আরিফুর রহমান সঙ্গীয় ফোর্স নিয়ে ঘটনাস্থলে উপস্থিত হলে উভয়পক্ষ ছত্রভঙ্গ হয়। তবে দুইপক্ষ যেকোন সময় আবারও সশস্ত্র মুখোমুখি হবে এমন আশংকায় রয়েছেন এলাকাবাসী।

ভালোবাসা দিবসে সেভ লাইফ ফাউন্ডেশন’র উদ্যোগে হেলথ ক্যম্প অনুষ্ঠিত

নিজ সংবাদ ॥ গতকাল ১৪ ফেব্র“য়ারি শুক্রবার কুষ্টিয়ার মঙ্গলবাড়িয়া ঈদগাহ ময়দানে কুষ্টিয়া সেভলাইফ ফাউন্ডেশনের উদ্যোগে ফ্রি হেলথ ক্যম্প ও ফ্রি ব্লাড গ্র“পিং এর আয়োজন করা হয় এবং রোগীদের বিনামূল্যে ঔষুধ বিতরণ করা হয়। সেভলাইফ ফাউন্ডেশন এর সভাপতি আশরাফ উদ্দিন নজু’র সভাপতিত্বে এবং সাধারণ সম্পাদক ব্যারিস্টার গৌরব চাকীর পরিচালনায় ফ্রি হেলথ ক্যাম্পের উদ্বোধন করেন কুষ্টিয়া সদর উপজেলা পরিষদের চেয়ারম্যান আতাউর রহমান আতা। হেলথ ক্যাম্প আয়োজনে সার্বিক সহযোগিতা করেন মাইক্রো ল্যাব সেন্টার লিঃ। সেভলাইফ ফাউন্ডেশনের যুগ্ম-সম্পাদক মোকাদ্দেস হোসেনের ব্যবস্থাপনায় এ সময় সদর উপজেলা আওয়ামীলীগের সাধারণ সম্পাদক রেজাউল হক, জেলা ছাত্রলীগের সাধারণ সম্পাদক আহম্মেদ, ১৬ নং ওয়ার্ড কাউন্সিলর হেলাল উদ্দিন, সাধারণ সম্পাদক ময়েন উদ্দিন, সাবেক সভাপতি আব্দুর রশীদ নুন্তা, সহ-সভাপতি নজরুল ইসলাম, মাইক্রোল্যাব এর চেয়ারম্যান তুহিন চাকী, ম্যানেজিং ডিরেক্টর মো: আমিনুল ইসলাম সংক্ষিপ্ত বক্তব্য রাখেন। উক্ত হেলথ ক্যাম্পে ডাঃ মোঃ রাশেদুল ইসলাম (মেডিসিন বিশেষজ্ঞ), ডাঃ কৈলাশ কুমার তুলসান (শিশু বিশেষজ্ঞ), ডাঃ সুজিত কুমার পাল (মেডিসিন এন্ড এন্ডোফাইনোলজী), ডাঃ আফসানা ইসরাত (গাইনী বিশেষজ্ঞ), ডাঃ আফসানা তাজসীন (গাইনী বিশেষজ্ঞ) রোগীদের স্বাস্থ্যসেবা প্রদান করেন। উক্ত আয়োজনে শহর আওয়ামী লীগ নেতা ডাঃ আফিল উদ্দিন, শহর ছাত্রলীগের যুগ্ম-আহবায়ক সর্দ্দার পাভেল, শহর যুবলীগ নেতা জেড এম সম্রাট ও সেভলাইফ ফাউন্ডেশনের পক্ষে রিংকু কর্মকার, সাজিম শেখ, পরিতোষ দাস, রফিকুল ইসলাম, কিশোর কুমার ঘোষ জগত, রাজীব সাহা, মো: ইয়ামিন, মো: শিশির, জয়, সীমান্ত, স্বপ্ন, মো: রাজীব প্রমুখ উপস্থিত ছিলেন। প্রধান অতিথির বক্তব্যে কুষ্টিয়া সদর উপজেলা পরিষদের চেয়ারম্যান আতাউর রহমান আতা ভালোবাসা দিবসে সেভলাইফের এমন ভিন্নধর্মী আয়োজনের প্রশংসা করেন এবং জনগণের করোনা ভাইরাস সংক্রান্ত সাবধানতা সম্পর্কিত করনীয় বিষয়ে বক্তব্য রাখেন।

মৃত্যুদ-প্রাপ্ত জামায়াত নেতা আবদুস সোবহানের মৃত্যু

ঢাকা অফিস ॥ জামায়াতের সাবেক নায়েবে আমির ও পাবনা-৫ আসনের সাবেক সংসদ সদস্য মাওলানা আবদুস সোবহান ইন্তেকাল করেছেন (ইন্নালিল্লাহি ওয়া ইন্না ইলাইহি রাজিউন)। মৃত্যুকালে তার বয়স হয়েছিল ৮৪ বছর। একাত্তরে মানবতাবিরোধী অপরাধের দায়ে প্রাণদন্ডে দন্ডিত এ নেতা শুক্রবার দুপুরে ঢাকা মেডিকেল কলেজ (ঢামেক) হাসপাতালে চিকিৎসাধীন অবস্থায় মারা যান। এ তথ্য নিশ্চিত করেছেন সুবহানের আত্মীয় গোলাম হাদী সাঈদী। তিনি জানান, আবদুস সোবহান কাশিমপুর কারাগারে ছিলেন। দীর্ঘদিন কারাগারে থেকে অসুস্থ হয়ে পড়লে তাকে ঢাকা মেডিকেলে ভর্তি করা হয়। এখানে চিকিৎসাধীন তার মৃত্যু হয়। মানবতাবিরোধী অপরাধের দায়ে প্রায় সাত বছর ধরে সুবহান কারান্তরীণ ছিলেন। জামায়াতের কর্মপরিষদের সদস্য এহসান মাহবুব যোবায়ের জানান, মানবতাবিরোধী অপরাধের দায়ে মৃত্যুদ-প্রাপ্ত আবদুস সুবহান কাশিমপুর কারাগারে অন্তরীণ ছিলেন। গত বছরের ২২ জুলাই কারাগারের বাথরুমে পড়ে আহত হন তিনি। এরপর তিনি অসুস্থ হয়ে পড়েন। জানা গেছে, গত ২৪ জানুয়ারি আবদুস সুবহানকে কাশিমপুর কারাগার থেকে ঢাকা মেডিকেলে আনা হয়। বার্ধক্যজনিত নানা রোগে ভুগছিলেন তিনি। গতকাল দুপুর ১টা ৩৩ মিনিটে তিনি মারা যান। লাশ ঢাকা মেডিকেল কলেজ হাসপাতাল মর্গে রয়েছে জানিয়ে ঢামেক পুলিশ ক্যাম্পের ইন্সপেক্টর বাচ্চু মিয়া জানান, মরদেহ ময়নাতদন্তের জন্য ঢামেক মর্গে রয়েছে। হাসপাতাল ও কারাগারের আনুষ্ঠানিকতা শেষে জামায়াত নেতা আবদুস সুবহানের মরদেহ পাবনা নিয়ে যাওয়া হবে এবং সেখানেই তার দাফন সম্পন্ন হবে বলে জানান এহসান মাহবুব যোবায়ের। আবদুস সুবহান জামায়াতের শীর্ষস্থানীয় নেতা ছিলেন। দীর্ঘদিন ধরে রাজনীতি করায় সংগঠনে তার প্রভাব ছিল উল্লেখ করার মতো। তিনি দলীয় টিকিটে পাবনা-৫ আসন থেকে পাঁচবার সংসদ সদস্য নির্বাচিত হন। সবশেষ ২০০১ সালের নির্বাচনে চারদলীয় জোটের মনোনয়ন নিয়ে এমপি নির্বাচিত হন।জামায়াতের নায়েবে আমির মাওলানা আবদুস সুবহান পাকিস্তান আমলে ছিলেন পাবনা জেলা জামায়াতের আমির ও কেন্দ্রীয় শুরা সদস্য। তিনি পাবনা আলিয়া মাদ্রাসার সাবেক হেড মাওলানা ছিলেন।২০১৫ সালের ১৮ ফেব্র“য়ারি জামায়াতের এই প্রভাবশালী নেতাকে যুদ্ধাপরাধের দায়ে প্রাণদন্ড দেন মানবতাবিরোধী অপরাধের বিচারে গঠিত আন্তর্জাতিক অপরাধ ট্রাইব্যুনাল। প্রসিকিউশনের আনা ৯টি অভিযোগের মধ্যে ছয়টি সন্দেহাতীতভাবে প্রমাণিত হওয়ায় মৃত্যু না হওয়া পর্যন্ত তাকে ফাঁসির রজ্জুতে ঝুলিয়ে দন্ড কার্যকর করার আদেশ দেন ট্রাইব্যুনাল-২ এর চেয়ারম্যান বিচারপতি ওবায়দুল হাসান। সুবহান হলেন জামায়াতের নবম শীর্ষ নেতা, যিনি একাত্তরের যুদ্ধাপরাধের দায়ে দোষী সাব্যস্ত হন। প্রসিকিউশনের আনা ১ নম্বর অভিযোগে ঈশ্বরদী কেন্দ্রীয় জামে মসজিদ থেকে বের করে ২০ জনকে হত্যা; ৪ নম্বর অভিযোগে সাহাপুর গ্রামে ছয়জনকে হত্যা এবং ৬ নম্বর অভিযোগে সুজানগর থানার ১৫টি গ্রামে কয়েকশ মানুষকে হত্যার দায়ে সুবহানকে দেয়া হয় মৃত্যুদন্ড। ২ নম্বর অভিযোগে পাকশী ইউনিয়নের যুক্তিতলা গ্রামে পাঁচজনকে হত্যা এবং ৭ নম্বর অভিযোগে সদর থানার ভাড়ারা ও দেবোত্তর গ্রামে অপহরণ ও হত্যার ঘটনায় সংশ্লিষ্টতা প্রমাণিত হওয়ায় তাকে দেয়া হয় আমৃত্যু কারাদন্ড।এ ছাড়া ৩ নম্বর অভিযোগে ঈশ্বরদীর অরণখোলা গ্রামে কয়েকজনকে অপহরণ ও আটকে রেখে নির্যাতনের ঘটনায় সংশ্লিষ্টতা প্রমাণিত হওয়ায় সুবহানকে পাঁচ বছরের কারাদ- দেয়া হয়।প্রসিকিউশন ৫, ৮ ও ৯ নম্বর অভিযোগ প্রমাণ করতে ব্যর্থ হওয়ায় এসব অভিযোগ থেকে সুবহানকে খালাস দেন আদালত।রায়ের দিন সুবহানকে নির্দোষ দাবি করে তার ছেলে নেছার আহমদ নান্নু বলেছিলেন- রাজনৈতিক উদ্দেশ্যপ্রণোদিত হয়ে মিথ্যা মামলায় তাকে ফাঁসি দেয়া হয়েছে। উল্লেখ্য, মাওলানা সুবহানের জন্ম ১৯৩৬ সালের ১৯ ফেব্র“য়ারি সুজানগর থানার মানিকহাটি ইউনিয়নের তৈলকুন্ডি গ্রামে। তার বাবার নাম শেখ নাঈমুদ্দিন, মায়ের নাম নুরানী বেগম। ১৯৫৪ সালে সিরাজগঞ্জ আলিয়া মাদ্রাসা থেকে তিনি কামিল পাস করেন। পরে তিনি পাবনা আলিয়া মাদ্রাসার হেড মাওলানা এবং আরিফপুরের উলট সিনিয়র মাদ্রাসার সুপারিনটেন্ডেন্টের দায়িত্ব পালন করেন।

ইয়াসিন-মাহমুদা স্মৃতি পরিষদের উদ্যোগে মালিহাদ ইউনিয়নের আবুরীতে বিশেষজ্ঞ স্বাস্থ্য ক্যাম্প

নিজ সংবাদ॥ ইয়াসিন-মাহমুদা স্মৃতি পরিষদের উদ্যোগে গতকাল শুক্রবার দিন ব্যাপী মিরপুর উপজেলার মালিহাদ ইউনিয়নের আবুরী সরকারী প্রাথমিক বিদ্যালয় প্রাঙ্গনে বিনামু ল্যে বিশেষজ্ঞ স্বাস্থ্য ক্যাম্প অনুষ্ঠিত হয়। ইয়াসিন-মাহমুদা স্মৃতি পরিষদের প্রতিষ্ঠাতা সভাপতি প্রফেসর ডাঃ ইফতেখার মাহমুদের নেতৃত্বে চিকিৎসা সেবা কার্যক্রমে অংশ নেন কুষ্টিয়া মেডিকেল কলেজের সহকারী অধ্যাপক ডাঃ চৌধুরী সারওয়ার জাহান,মিরপুর উপজেলা হাসপাতালের চিকিৎসক ডাঃ সানজিদা ইফরাত। এসময় উপস্থিত ছিলেন মালিহাদ ইউনিয়নের চেযারম্যান আনোয়ার হোসেন,ইসলামিয়া কলেজের সিনিয়র শিক্ষক অধ্যাপক সিরাজুল হক,সাংবাদিক মিলন আলী, রাজিবুল ইসলাম ও আনোয়ার হোসেন। দিন ব্যাপী ৫শতাধিক রোগীর মাঝে বিনামুল্যে ব্যবস্থা পত্র এবং স্বাস্থ্য বিষয়ে বিভিন্ন তথ্য প্রদান করা হয়। উল্লেখ্য ইয়াসিন-মাহমুদা স্মৃতি পরিষদের উদ্যোগে প্রতি মাসে নিয়োমিত বিনামুল্যে চিকিৎসা সেবা কার্যক্রম অব্যাহত রয়েছে।

দেশের বারোটা বাজুক আর তেরোটা বাজুক তাতে তাদের কী আসে যায় – রিজভী

ঢাকা অফিস ॥ দেশের সর্বস্তরে দুর্নীতি ও লুটপাটের অভিযোগ করেছেন বিএনপির সিনিয়র যুগ্ম মহাসচিব রুহুল কবির রিজভী। ব্যাংকিং সেক্টরে লুটপাটের চিত্র তুলে ধরে তিনি অর্থমন্ত্রীর কড়া সমালোচনা করেছেন। বলেছেন, দেশের বারোটা বাজুক আর তেরোটা বাজুক তাতে তাদের কী আসে যায়? গতকাল শুক্রবার রাজধানীর নয়াপল্টনে দলের কেন্দ্রীয় কার্যালয়ে এক সংবাদ সম্মেলনে তিনি এসব কথা বলেন। একটি জাতীয় দৈনিকের অনুসন্ধানী প্রতিবেদনের কথা তুলে ধরে রিজভী বলেন, বিদেশে রাজকীয় জীবনে শতাধিক ব্যাংক লুটেরা। পরিস্থিতি এমন যে, ব্যাংক থেকে টাকা মেরে দেয়া সবচেয়ে সহজ। এই উৎসবে মেতেছিলেন বেশ কয়েকজন। হাজার হাজার কোটি টাকা মেরে তারা এখন লাপাত্তা। যুক্তরাষ্ট্র, মালয়েশিয়া, দুবাই, কানাডা, অস্ট্রেলিয়াসহ উন্নত বিভিন্ন দেশে পাড়ি জমিয়েছেন বিনা বাধায়। করছেন রাজকীয় জীবনযাপন। অর্থমন্ত্রীর সমালোচনা করে তিনি বলেন, এত ভয়ঙ্কর খবরের পর যখন নিশিরাতের সরকারের অর্থমন্ত্রী নিজেকে বিশ্বের এক নম্বর অর্থমন্ত্রী দাবি করেন, তখন জনগণের বুঝতে বাকি থাকে না যে, এই সরকারের সবটাই শুভঙ্করের ফাঁকি। মহালুটপাট হরিলুটের কোনো প্রতিকার বা প্রতিরোধ হচ্ছে না। কোনো বিচার বা শাস্তিও হচ্ছে না। দলকানা দুদক এসব দেখে না। কারণ এদের গোড়া সর্বোচ্চ পর্যায়ে প্রসারিত। তারা ক্ষমতায় বসেছেন কেবল লুটেপুটে-চেটেপুটে খেতে। দেশের বারোটা বাজুক বা তেরোটা বাজুক তাতে তাদের কিছু আসে যায় না। কোথাও সরকারের নিয়ন্ত্রণ নেই দাবি করে তিনি বলেন, দেশে মানুষের বিরুদ্ধে আইনশৃঙ্খলা বাহিনীকে লেলিয়ে দিয়ে একমাত্র নিরাপদে জনগণের ভোট ডাকাতি ছাড়া, আর খুন-গুম ছাড়া দেশে কিংবা বিদেশে কোথাও সরকারের কোনো নিয়ন্ত্রণ নেই। তারা মনে করে ভোট ও বিবেক দুটোই কিনে ফেলেছে। বিএসএফ বাংলাদেশিদের হত্যা করলেও সরকার ভয়ে প্রতিবাদ করতে পারছে না। প্রতিদিন সহায় সম্বল হারা মানুষ প্রবাস থেকে বাধ্য হয়ে দেশে ফিরছে, কিছুই করতে পারছে না সরকার। আবার অনেকে উন্নত জীবনের আশায় সাগর পাড়ি দিয়ে বিদেশ যেতে গিয়ে ডুবে মরছে সাগরে।বাংলাদেশ ব্যাংকের রিপোর্টের কথা তুলে ধরে রিজভী বলেন, খোদ বাংলাদেশ ব্যাংকের সর্বশেষ ফিন্যান্সিয়াল স্ট্যাবিলিটি রিপোর্টে বলা হচ্ছে, দেশের শীর্ষ তিন জন গ্রাহক যদি কোনো কারণে ঋণখেলাপি হন, তা হলে দেশের ২১ ব্যাংক মূলধন সংরক্ষণে ব্যর্থ হবে। আর মাত্র ৭ জন শীর্ষ গ্রাহক খেলাপি হলে ৩৫টি ব্যাংক এবং ১০ জন শীর্ষ গ্রাহক খেলাপি হলে ৩৭টি ব্যাংক মূলধন ঘাটতিতে পড়বে। এর অর্থ দাঁড়ায়, বাংলাদেশের ব্যাংকগুলো এবং ব্যাংকগুলোতে গচ্ছিত দেশের জনগণের সম্পদ হাতেগোনা কয়েকজন ব্যক্তির কাছে জিম্মি।তিনি বলেন, ব্যাংক থেকে টাকা মেরে বিভিন্ন সময় বিদেশে পালিয়ে গেছেন এমন শতাধিক লুটেরাকে চিহ্নিত করেছে বাংলাদেশ ব্যাংক। ঋণের টাকা তুলতে না পেরে সংশি¬ষ্ট ব্যাংকগুলো এসব ঋণকে মন্দ ঋণ (খেলাপি) ঘোষণা করতে বাধ্য হচ্ছে। এমনকি এদের কারণে একটি অব্যাংক আর্থিক প্রতিষ্ঠানকে অবসায়ন করা হয়েছে। এ তালিকায় সর্বশেষ সংযোজন প্রশান্ত কুমার হালদার ওরফে পিকে হালদার। ব্যাংক ও আর্থিক প্রতিষ্ঠান থেকে সাড়ে ৩ হাজার কোটি টাকা মেরে দিয়েছেন। বিদেশে করেছেন বিভিন্ন প্রতিষ্ঠান। প্রতিষ্ঠান আছে কানাডাতেও। কয়েকশ কোটি টাকা নিয়ে অস্ট্রেলিয়ায় পাড়ি জমিয়েছেন স্বাস্থ্য অধিদফতরের প্রশাসনিক কর্মকর্তা আফজাল হোসেন। এমন আরও অনেকে ব্যাংকের টাকা মেরে ব্যাংকক, দুবাই, অস্ট্রেলিয়াসহ মধ্যপ্রাচ্য ও ইউরোপের বিভিন্ন দেশে আশ্রয় নিয়েছেন।বেসিক ব্যাংকের ঋণ জালিয়াতির কথা তুলে ধরে বিএনপির অন্যতম এই শীর্ষ নেতা বলেন, বেসিক ব্যাংক থেকে ভুয়া প্রতিষ্ঠানের নামে ৩০০ কোটি টাকা ঋণ নিয়ে কানাডায় পালিয়েছেন স্ক্র্যাপ (জাহাজভাঙা) ব্যবসায়ী গাজী বেলায়েত হোসেন মিঠু ওরফে জিবি হোসেন। দুদক তার পাসপোর্টের ওপর নিষেধাজ্ঞা জারি করেও তাকে আটকানো যায়নি। গাজী বেলায়েত এখন কানাডার টরন্টোয় থাকেন। অগ্রণী ব্যাংকের ২৫৮ কোটি ৫৬ লাখ ১৬ হাজার টাকা ও বিডিবিএল থেকে প্রায় ১০০ কোটি টাকা নিয়ে আত্মসাৎ করে মালয়েশিয়ায় পালিয়েছেন এর মালিকরা।

কুষ্টিয়া এডিটরস ফোরামের নির্বাহী কমিটির সভা

কুষ্টিয়া, ১৪ই ফেব্র“য়ারী ২০২০॥ কুষ্টিয়া এডিটরস ফোরামের নির্বাহী কমিটির সভা অনুষ্ঠিত হয়েছে। গতকাল শুক্রবার সন্ধা ৭টায় শহরের শাপলা চত্তরস্থ এডিটর ফোরামের অস্থায়ী কার্যালয়ে এই সভার আয়োজন করা হয়। সভায় এডিটর ফোরামের গঠনতন্ত্র তৈরী, ফোরামের কার্যালয় ও সাধারণ সভা আয়োজনসহ বেশ কিছু গুরুত্বপূর্ণ সিদ্ধান্ত গৃহিত হয়েছে। কুষ্টিয়া এডিটর ফোরামের সভাপতি ও দৈনিক দর্পণ পত্রিকার সম্পাদক মজিবুল শেখের সভাপতিত্বে ও সাধারণ সম্পাদক নুর আলম দুলালের পরিচালনায় সভায় বক্তব্য রাখেন এডিটর ফোরামের সহ-সভাপতি ও দৈনিক হাওয়া পত্রিকার সম্পাদক আব্দুর রাজ্জাক বাচ্চু, দৈনিক মাটির ডাক পত্রিকার সম্পাদক লুৎফর রহমান কুমার, সাংগঠনিক সম্পাদক দৈনিক দিনের খবর সম্পাদক ফেরদৌস রিয়াজ জিলক্ষু, কোষাধ্যক্ষ দৈনিক মাটির পৃথিবী পত্রিকার এম এ জিহাদ, দপ্তর সম্পাদক দৈনিক সুত্রপাত পত্রিকার সম্পাদক মোকাদ্দেস হোসেন সেলিম, নির্বাহী সদস্য দৈনিক কুষ্টিয়ার খবর পত্রিকার সম্পাদক এ এম জুবায়েদ রিপন ও দৈনিক দি টিচার পত্রিকার সম্পাদক শরীফ বিশ^াস। সভায় সর্বসম্মতিক্রমে আগামী ২১ ফেব্র“য়ারী সন্ধা সাড়ে ৬টায় শাপলা চত্তরস্থ ফোরামের অস্থায়ী কার্যালয়ে সাধারণ সভা আয়োজনের সিদ্ধান্ত গৃহিত হয়। এছাড়া নির্বাহী কমিটির অনুমোদিত খসড়া গঠনতন্ত্র সাধারণ সভায় উপস্থাপন করে পর্যালোচনা ও অনুমোদনেরও সিদ্ধান্ত গৃহিত হয়।

গণমাধ্যমের শৃঙ্খলা ফিরিয়ে আনা হবে – তথ্যমন্ত্রী

ঢাকা অফিস ॥ তথ্যমন্ত্রী ড. হাছান মাহমুদ গণমাধ্যমের শৃংঙ্খলা প্রতিষ্ঠার প্রতি গুরুত্বারোপ করেছেন। গত দশ বছরে দেশে গণমাধ্যম দ্রুত বিকশিত হওয়ায় তিনি এই আহ্বান জানান। গতকাল শুক্রবার এক বৈঠকে তিনি বলেন, ‘আজকে মিডিয়া বলতে শুধু খবরের কাগজকে বুঝায় না। এখন এতে খবরের কাগজ, টেলিভিশন, রেডিও এবং অনলাইন নিউজ পোর্টাল অন্তর্ভুক্ত হয়েছে। সংবাদপত্রের চিত্র গত দশ বছরে বদলে গেছে।’ প্রেস কাউন্সিল দিবস উপলক্ষে বাংলাদেশ প্রেস কাউন্সিলের কার্যালয়ে এই অনুষ্ঠানের আয়োজন করে। প্রধান অতিথির বক্তৃতায় ড. হাছান মাহমুদ বলেন, দেশে মিডিয়ার ব্যাপক বিকাশের কারণে মিডিয়ায় আরো অনেক নতুন চ্যালেঞ্জ যুক্ত হয়েছে। তিনি মনে করেন, যে কোন মিডিয়ায় যে কোন ধরণের ভুয়া নিউজ প্রচার হলে তা অনেক ক্ষেত্রেই সমাজের পাশাপাশি রাষ্ট্রের জন্যও ক্ষতিকর হয়ে ওঠে। অনেকে সামাজিক মাধ্যমকে গণমাধ্যম হিসেবে বিবেচনা করেন। তবে, এটি একটি অসম্পাদিত প্লাটফরম, গণমাধ্যম নয় উল্লেখ করে তিনি বলেন, অনলাইন পোর্টালের কার্ড নিয়ে যারা নিজেদেরকে সাংবাদিক হিসেবে পরিচয় দেয়, তারা আসলে সাংবাদিক নয়। আওয়ামী লীগের যুগ্ম সাধারণ সম্পাদক হাছান মাহমুদ মিডিয়ায় শৃংঙ্খলা ফিরিয়ে আনতে এবং দেশে বস্তুনিষ্ঠ সাংবাদিকতা নিশ্চিত করার লক্ষ্যে একটি কর্ম পরিকল্পনা তৈরির জন্য বাংলাদেশ প্রেস কাউন্সিলের প্রতি আহ্বান জানান। তিনি বলেন, মিডিয়া এখন চূড়ান্ত স্বাধীনতা ভোগ করছে। তবে, এটি এমনভাবে ব্যবহার করতে হবে যাতে অপরের স্বাধীনতা খর্ব না করে। প্রেস কাউন্সিল সম্পর্কে তথ্যমন্ত্রী বলেন, জাতির পিতা বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমান প্রেস কাউন্সিল অ্যাক্ট ১৯৭৪ পাস করেছেন এবং পরে দেশের মিডিয়ার বিকাশের জন্য বাংলাদেশ প্রেস কাউন্সিল গঠন করা হয়। দেশকে এগিয়ে নিতে বঙ্গবন্ধু তাঁর শাসনকালে প্রেস কাউন্সিল অ্যাক্ট ১৯৭৪ এর মতো অনেক আইন পাস করেন। প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার নেতৃত্বে বাংলাদেশ এখন উন্নয়নের রোল মডেল উল্লেখ করে ড. হাছান বলেন, ‘আমাদের মূল লক্ষ্য বহুত্ববাদী ও সমতা ভিত্তিক সমাজ প্রতিষ্ঠা।’ অনুষ্ঠানে সভাপতিত্ব করেন বাংলাদেশ প্রেস কাউন্সিলের চেয়ারম্যান বিচারপতি মো. মমতাজ উদ্দিন আহমেদ। এতে বক্তব্য রাখেন তথ্যসচিব কামরুন নাহার এবং দৈনিক অবজারভার সম্পাদক ইকবাল সোবহান চৌধুরী।

খালেদা জিয়ার জামিনের জন্য আবারও উচ্চ আদালতে যাবে বিএনপি

ঢাকা অফিস ॥ দুই বছর ধরে কারাবন্দি বিএনপি চেয়ারপারসন খালেদা জিয়ার জামিনের জন্য আবারও উচ্চ আদালতে আবেদন করবেন তার আইনজীবীরা। শুক্রবার বিএনপির স্থায়ী কমিটির সঙ্গে বৈঠক শেষে একথা জানান খালেদা জিয়ার আইনজীবী অ্যাডভোকেট খন্দকার মহবুব হোসেন। স্থায়ী কমিটির সদস্য ব্যারিস্টার জমির উদ্দিন সরকার জানান, বিকাল ৪টা থেকে গুলশানে বিএনপি চেয়ারপারসনের রাজনৈতিক কার্যালয়ে খালেদা জিয়ার মুক্তি নিয়ে স্থায়ী কমিটির সদস্যদের সঙ্গে বৈঠক করেন দলীয় আইনজীবীরা। আগামী সপ্তাহের মধ্যেই আবেদন করা হবে। তাদের প্রত্যাশা এবারের জামিন আবেদন করলে সরকারের প্রতিহিংসার প্রভাব থাকবে না। বর্তমানে খালেদা জিয়ার বিরুদ্ধে ৩৬টি মামলা বিচারাধীন থাকলেও কারামুক্তিতে বাধা মাত্র দুটি মামলা। তার কারামুক্তিতে এখন অন্তত এই দুই মামলায় জামিন পেতে হবে বলে জানিয়েছেন আইনজীবীরা। সর্বশেষ গত ১২ ডিসেম্বর জিয়া চ্যারিটেবল ট্রাস্ট দুর্নীতি মামলায় সাজাপ্রাপ্ত খালেদা জিয়ার জামিন আবেদন পর্যবেক্ষণসহ খারিজ করে দেন সর্বোচ্চ আদালত। প্রসঙ্গত, জিয়া অরফানেজ ও জিয়া চ্যারিটেবল ট্রাস্ট দুর্নীতি মামলায় ১৭ বছরের সাজা নিয়ে ২০১৮ সালের ৮ ফেব্রুয়ারি থেকে কারাবন্দি বিএনপি চেয়ারপারসন খালেদা জিয়া। সেখানে সাবেক এই প্রধানমন্ত্রী অসুস্থ হয়ে পড়লে গত বছরের ১ এপ্রিল বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিব মেডিকেল বিশ্ববিদ্যালয়ে (বিএসএমএমইউ) ভর্তি করা হয়। সেখানেই তিনি চিকিৎসাধীন রয়েছেন।

কুষ্টিয়ায় র‌্যাবের অভিযানে ইয়াবা ট্যাবলেট সহ ০১ জন আসামী গ্রেফতার।

র‌্যাব-১২, সিপিসি-১, কুষ্টিয়া ক্যাম্পের র‌্যাবের একটি অভিযানিক দল ১৪ ফেব্র“য়ারি দুপুর ১২.৩০ ঘটিকার সময় ‘‘কুষ্টিয়া জেলার ভেড়ামারা থানাধীন বাহিরচর ইউপির ষোল দাগ উত্তর পাড়াস্থ রাজুর মোড় গামী সংযোগ সড়কের মুখে পাঁকা রাস্তার উপর কুষ্টিয়া হতে লালন শাহ সেতু গামী বিশ^ রোডের পশ্চিম পাশের্^’’ একটি মাদক অভিযান পরিচালনা করে। উক্ত অভিযানে ২৬৪ পিচ ইয়াবা ট্যাবলেট, ০১টি মোবাইল ফোন, ০২টি সীমকার্ড এবং নগদ ১০,০০০/- (দশ হাজার) টাকা সহ ০১ জন আসামী মোঃ সোনা উল্লাহ্ (৪৯), পিতা-মৃত রুস্তম আলী, সাং-ষোড়দাগ উত্তর পাড়া (সোনার মোড়), থানা-ভেড়ামারা, জেলা-কুষ্টিয়া’কে গ্রেফতার করা হয়। পরর্বতীতে উদ্ধারকৃত আলামতসহ ধৃত আসামীর বিরুদ্ধে কুষ্টিয়া জেলার ভেড়ামারা থানায় একটি মাদক মামলা দায়ের করা হয়েছে এবং গ্রেফতারকৃত আসামী’কে কুষ্টিয়া জেলার ভেড়ামারা থানায় সোপর্দ করা হয়েছে।

খালেদার উন্নত চিকিৎসায় প্যারোলে মুক্তির গুঞ্জন!

ঢাকা অফিস ॥ দুই বছর ধরে কারাবন্দি বিএনপি চেয়ারপারসন খালেদা জিয়ার জামিন নিয়ে নানা টানাপোড়েনের মধ্যেই প্যারোলে মুক্তির গুঞ্জন শুরু হয়েছে। দুর্নীতির মামলায় দন্ডিত কারাবন্দি খালেদা জিয়া বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিব মেডিকেল বিশ্ববিদ্যালয় হাসপাতালে চিকিৎসাধীন রয়েছেন। উন্নত চিকিৎসার জন্য শিঘ্রই বিদেশ যাচ্ছেন বলে গুঞ্জন এখন রাজনৈতিক অঙ্গনে। বিএনপি-সংশ্লিষ্টরা বলছেন, গত ১১ ফেব্র“য়ারি বিএসএমএমইউতে চিকিৎসাধীন খালেদা জিয়ার সঙ্গে সাক্ষাৎ শেষে পরিবারের পক্ষ থেকে ‘উন্নত চিকিৎসার জন্য বিদেশ পাঠানোর’ আবেদন করা হয়। যদিও বিএনপির মহাসচিব মির্জা ফখরুল ইসলাম আলমগীর ‘খালেদা জিয়ার পরিবারের আবেদনের’ বিষয়টি জানেন না বলে জানান। গত ১২ ফেব্রুয়ারি মির্জা ফখরুল ইসলাম আলমগীর এক সংবাদ সম্মেলনে বলেন, পরিবারের পক্ষ থেকে চিঠি দেয়া হয়েছে কি-না, সেটা আমার জানা নেই। এদিকে আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক ওবায়দুল কাদের গতকাল শুক্রবার বলেন, বেগম খালেদা জিয়ার প্যারোলে মুক্তির বিষয়ে আমার সঙ্গে ফখরুল ইসলামের টেলিফোনে কথা হয়েছে। তিনি আমাকে অনুরোধ করেছেন, আমি যেন প্রধানমন্ত্রীকে খালেদা জিয়ার প্যারোলের বিষয়ে বলি। এদিন রাজধানীর ধানমন্ডিতে আওয়ামী লীগ সভাপতি শেখ হাসিনার রাজনৈতিক কার্যালয়ে আয়োজিত এক সংবাদ সম্মেলনে তিনি এ কথা বলেন। তিনি আরও বলেন, খালেদা জিয়ার প্যারোলে মুক্তির বিষয়ে আমি স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী ও আইনমন্ত্রীর সঙ্গে কথা বলেছি। এ ব্যাপারে তারা লিখিত কোনো আবেদন পাননি। তারা (বিএনপি) শুধু মুখে মুখেই বলছেন, কিন্তু লিখিত কোনো আবেদন করেননি। এটা দুর্নীতির মামলা। রাজনৈতিক মামলা হলে সরকার বিবেচনা করতে পারত। ‘বিএনপি বারবার সরকারের কাছে খালেদা জিয়ার মুক্তি বা প্যারোলে মুক্তি চাচ্ছে, কিন্তু বিষয়টি রাজনৈতিক মামলা নয়। সরকার বিষয়টি তখনই বিবেচনা করতে পারতো, যদি সেটা রাজনৈতিক হতো’ বিএনপি দীর্ঘদিন ধরে বিশেষায়িত হাসপাতালে খালেদা জিয়ার চিকিৎসার দাবি করে আসছে। কিন্তু কারাবিধি অনুযায়ী বন্দি হিসেবে তাকে সরকারি হাসপাতাল বঙ্গবন্ধু মেডিকেল বিশ্ববিদ্যালয় হাসপাতালের কেবিনে ভর্তি করে চিকিৎসা দেয়া হচ্ছে। খালেদা জিয়ার দাঁত ও জিহ্বার চিকিৎসা সেখানে ভালোভাবে সম্পন্ন হলেও তার ডায়াবেটিস নিয়ন্ত্রণ করা যাচ্ছে না। এটি খুব ঊর্ধ্বমুখী। এর প্রভাবে তিনি যেকোনো সময় আরও বেশি অসুস্থ হয়ে যেতে পারেন- এমন দাবি পরিবার ও বিএনপির। বিষয়টি গুরুত্ব দিয়ে সরকার খালেদা জিয়ার প্যারোলে মুক্তির বিষয়টি বিবেচনা করবে। সূত্রের দাবি, সরকার ও যথাযথ কর্তৃপক্ষের সঙ্গে আনুষ্ঠানিক প্রক্রিয়া সম্পন্ন করেই উন্নত চিকিৎসার জন্য লন্ডনে বেগম খালেদা জিয়াকে নেয়া হবে। গত বছরের মার্চ থেকেই শোনা যাচ্ছে, উন্নত চিকিৎসার জন্য প্যারোলে মুক্তি নিয়ে কারাবন্দি বিএনপি চেয়ারপারসন খালেদা জিয়া বিদেশ যাবেন। সূত্র আরও বলছে, চলতি বছরের শুরু থেকে বিএনপি খালেদা জিয়ার প্যারোলে মুক্তি নিয়ে সরকারের সঙ্গে সমঝোতা করে আসছিল। সরকারও রাজি ছিল। কিন্তু বাধ সাধে বিএনপির ঢাকা আর লন্ডনের দ্বিমুখী সিদ্ধান্ত। এখানে বিএনপির রাজনৈতিক লাভ-ক্ষতির হিসাব আছে, বিষয়টি খালেদা জিয়া নিজেও জানেন। বেশকিছু দেশের কূটনীতিকরাও খালেদা জিয়ার প্যারোলের বিষয়ে সরকারের কাছে সুপারিশ করেছে। কূটনীতিকদের পরামর্শ অনুযায়ী বিএনপি সংসদে ফিরেছে এবং গঠনমূলক রাজনীতির অংশ হিসেবে বিএনপি মহাসচিব বিভাগীয় পর্যায়ে সমাবেশ করছেন। সেখানে সরকারের পক্ষ থেকে কোথাও কোনো বাধা দেয়া হয়নি। জানা গেছে, খালেদা জিয়ার প্যারোলের বিষয়ে সবচেয়ে বড় বাধা ছিল লন্ডনে অবস্থানরত তার বড় ছেলে তারেক রহমান। কিন্তু খালেদা জিয়ার স্বাস্থ্যের অবনতির কারণে তিনি নিজের অবস্থান থেকে সরে এসেছেন। তার সঙ্গে কথা বলেই শামীম ইস্কান্দার পরিবারের পক্ষ থেকে সর্বাধুনিক সুচিকিৎসা নিশ্চিত করতে তাকে বিদেশে প্রেরণের জন্য মেডিকেল বোর্ডের সুপারিশ চেয়ে বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিব মেডিকেল বিশ্ববিদ্যালয় হাসপাতাল (বিএসএমএমইউ) কর্তৃপক্ষকে পরিবারের পক্ষ থেকে চিঠি দেওয়া হয়েছে। খালেদা জিয়ার আবেদনটি মেডিকেল বোর্ডে পাঠানো হয়েছে বলে বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিব মেডিকেল বিশ্ববিদ্যালয় সূত্রও নিশ্চিত করেছে। খালেদা জিয়াকে বিদেশে পাঠানোর জন্য তার পরিবারের পক্ষ থেকে এটাই প্রথম লিখিত আবেদন বলে জানায় ওই সূত্র। গংশ্লিষ্টদের দাবি, খালেদা জিয়ার প্যারোলের বিষয়ে সরকার শুরু থেকে আন্তরিক থাকলেও রাজনৈতিক নানা সমীকরণ মেলাতে গিয়ে বিলম্ব করেছে বিএনপি। দলটি না পেরেছে মুক্তির আন্দোলনে রাজপথ উত্তপ্ত করতে, না পেরেছে আইনি প্রক্রিয়ায় সামনে এগোতে। বিএনপির ক্ষয়িষ্ণু রাজনৈতিক সক্ষমতার ওপর ভরসা রাখতে পারেনি খালেদার পরিবার। তবে, পরিবারের পক্ষ থেকে খালেদা জিয়াকে বিদেশে পাঠানোর জন্য এবারই প্রথম লিখিত আবেদন করা হলো। সূত্রের দাবি, সমঝোতার অংশ হিসেবেই আবেদন করা হয়েছে। খালেদা জিয়ার ব্যক্তিগত চিকিৎসক তথা ভাগ্নে ডা. মামুন সব প্রক্রিয়া গুছিয়ে আনছেন। সব আইনি প্রক্রিয়া সেরে মেডিকেল বোর্ডের সার্টিফিকেট ও স্থানান্তরের সুপারিশ নিয়েই খালেদা জিয়াকে লন্ডন পাঠানো হতে পারে। খালেদা জিয়ার প্যারোলে মুক্তির বিষয়ে পরিবারের আবেদন সম্পর্কে শামীম ইস্কান্দার বলেন, তার দ্রুত অবনতিশীল স্বাস্থ্যের পরিপ্রেক্ষিতে যেকোনো অপূরণীয় ক্ষতি এড়াতে আধুনিক সুযোগ-সুবিধা সম্বলিত বিদেশি হাসপাতালে চিকিৎসা প্রয়োজন। খালেদা জিয়ার পরিবারের পক্ষ থেকে ব্যয় বহনসহ তাদের দায়িত্বে উন্নত চিকিৎসার ব্যবস্থা নেয়ার ক্ষেত্রে হাসপাতাল কর্তৃপক্ষের সহযোগিতা চাওয়া হয়েছে আবেদনে। আবেদনটি বিবেচনা করা হবে বলে আশা করছে পরিবার। আবেদন প্রসঙ্গে খালেদা জিয়ার বোন সেলিমা ইসলাম বলেন, ‘মেডিকেল বোর্ড যেন বিদেশে চিকিৎসার ব্যাপারে সরকারকে সুপারিশ করে সেজন্য তাদের এ আবেদন। আবেদনে উন্নত চিকিৎসার জন্য বিদেশে নিতে চেয়েছি। আর বলেছি যে, উনাকে নিঃশর্ত মুক্তি দিতে। কারণ এটা সম্পূর্ণ সাজানো ও মিথ্যা মামলা। সেজন্য আমরা নিঃশর্ত মুক্তি চেয়েছি।’ খালেদা জিয়া বিদেশ যেতে রাজি হবেন কি-না, এমন প্রশ্নে সেলিমা ইসলাম বলেন, ‘উনার সম্মতি থাকবে। উনার অবস্থা এতই খারাপ হয়ে গেছে যে, পাঁচ মিনিটও দাঁড়িয়ে থাকতে পারছেন না। বাম হাত সম্পূর্ণ বেঁকে গেছে। ডান হাতেরও খারাপ অবস্থা। তার চোখ দিয়েও অনবরত পানি পড়ছে। পায়ে কোনো সাপোর্ট রাখতে পারছেন না।’ ‘তার (খালেদা জিয়া) অবস্থা এমন যে, কখন কী ঘটে তা বলা যাচ্ছে না। আমরা ভয়াবহ আশঙ্কায় আছি। এ অবস্থায় একটা মানুষ তো চিকিৎসার জন্য যেখানেই হোক যেতে চাইবে।’