জিটিসিপি মাধ্যমিক বিদ্যালয়ে বিদায় ও নবীনবরণ

আমলা অফিস ॥ কুষ্টিয়ার দৌলতপুর উপজেলার জিটিসিপি মাধ্যমিক বিদ্যালয়ের নবাগত শিক্ষার্থীদের নবীনবরণ ও এসএসসি-২০২০ শিক্ষার্থীদের বিদায় অনুষ্ঠান অনুষ্ঠিত হয়েছে। গতকাল সোমবার সকালে জিটিসিপি মাধ্যমিক বিদ্যালয়ের উদ্যোগে বিদ্যালয় প্রাঙ্গণে এ অনুষ্ঠান অনুষ্ঠিত হয়। জিটিসিপি মাধ্যমিক বিদ্যালয়ের প্রধান শিক্ষক আব্দুর রাজ্জাকের সভাপতিত্বে প্রধান অতিথির বক্তব্য রাখেন বিদ্যালয়ের পরিচালনা পরিষদের সভাপতি তসলিম উদ্দিন। অনুষ্ঠানে বিশেষ অতিথির বক্তব্য রাখেন কালিদাসপুর পুলিশ ক্যাম্পের ইনচার্জ তরিকুল ইসলাম, জিটিসিপি মাধ্যমিক বিদ্যালয়ের পরিচালনা পরিষদের সদস্য ইসরাইল হোসেন, সাহাজুল ইসলাম, বিশিষ্ট সমাজ সেবক মাহাতাব উদ্দিন লাদেন, আব্দুস সামাদ, আমান মালিথা, নুর মহাম্মদ, সাজেদুল ইসলাম, আবুল কালাম আজাদ, মাহাবুব আলম, আব্দুল লতিফ, নাজমুল ইসলাম, বিদ্যালয়ের সহকারী প্রধান শিক্ষক হায়দার হোসেন, সহকারী শিক্ষক সাইফুল ইসলাম, আক্তারুজ্জামান, নজরুল ইসলাম, আবুল কাশেম, বিপ্লব হোসেন, সুফিয়া খাতুন, ফিরোজা আক্তার, মাজেদা খাতুন পলি, শারমিন আক্তার প্রমুখ। অনুষ্ঠানের শুরুতেই বিদ্যালয়ে ২০২০ শিক্ষাবর্ষের নতুন শিক্ষার্থীদের ফুল দিয়ে বরণ করে নেয় অধ্যায়নরত শিক্ষার্থীরা। পরে ২০২০ সালের এসএসসি পরীক্ষার্থীদের বিদায় দেওয়া হয়। এসময় বিদ্যালয়ের পক্ষ থেকে পরীক্ষার্থীদের পরীক্ষা উপকরণ তুলে দেন আমন্ত্রিত অতিথিরা।

ঝিনাইদহ জেলা ফুটবল এসোসিয়েশনের নির্বাচন অনুষ্ঠিত

ঝিনাইদহ প্রতিনিধি ॥ ব্যাপক উৎসাহ উদ্দিপনার মধ্যদিয়ে ঝিনাইদহে জেলা ফুটবল এসোসিয়েশনের নির্বাচন অনুষ্ঠিত হয়েছে। নির্বাচনে বিনা প্রতিদ্বন্দ্বীতায় আহসানুজ্জামান ঝন্টু সভাপতি নির্বাচিত হয়েছেন। সোমবার দুপুরে ৪র্থ বার্ষিকী এ নির্বাচনের প্রধান নির্বাচন কমিশনার আমিনুর ইসলাম এ তথ্য জানান। এছাড়াও কমিটিতে সহ-সভাপতি পদে আশরাফুল আলম, এ্যাড. বিকাশ কুমার ঘোষ, কোষাধ্যক্ষ পদে নাজমুল আলম বাকী, সদস্য পদে হাসানুজ্জামান খোকো, শেখ শফি কুদ্দুস, এ কে এম রেজাউল হাকিম পিকুল, নুরুদ্দিন পিকু, তোহিদুল ইসলাম সংগ্রাম, আনিচুর রহমান, রাশিদুর রহমান রাসেল, মীর সুলতানুজ্জামান লিটন, ওয়াহিদুজ্জামান ইকু নির্বাচিত হয়েছেন। এর আগে ২০ জানুয়ারি চুড়ান্ত ভোটার তালিকা প্রস্তুত, ২২ জানুয়ারি মনোনয়নপত্র সংগ্রহ, ২৩ জানুয়ারি মনোনয়নপত্র জমা, ২৪ জানুয়ারি মনোনয়ন পত্র প্রত্যাহার, ২৫ জানুয়ারি মনোনয়নপত্র যাচাই বাছায় ও প্রার্থী চুড়ান্ত করা হয়। নব-নির্বাচিত এই ১৩ জন  নেতৃবৃন্দ সাধারণ সম্পাদক পদে লোক নিয়োগ দিবেন। নব-নির্বাচিত এই কমিটি জেলার ফুটবল অঙ্গনকে সারাদেশে পরিচিত করে তোলাসহ সার্বিক উন্নয়ন করবে এমনটি আশা করছেন জেলার ক্রীড়াবিদরা। নব-গঠিত এই কমিটিকে স্বাগত জানিয়েছেন নানা শ্রেণী পেশার মানুষ। নির্বাচনে সহকারী নির্বাচন কমিশনারের দ্বায়িত্ব পালন করেন এম মোস্তাফিজুর রহমান বরসাত ও বাচ্চু মিয়া।

 

সদরপুর সিদ্দিকীয়া দাখিল মাদরাসায় পরীক্ষার্থীদের বিদায় অনুষ্ঠান

আমলা অফিস ॥ কুষ্টিয়ার মিরপুর উপজেলার সদরপুর সিদ্দিকীয়া দাখিল মাদরাসার দাখিল-২০২০ শিক্ষার্থীদের বিদায় ও মেধা ভিত্তিক পুরষ্কার বিতরনী অনুষ্ঠান অনুষ্ঠিত হয়েছে। গতকাল সোমবার সকালে সদরপুর সিদ্দিকীয়া দাখিল মাদরাসার উদ্যোগে মাদরাসার হলরুমে এ অনুষ্ঠান অনুষ্ঠিত হয়। সদরপুর সিদ্দিকীয়া দাখিল মাদরাসার সুপার শেখ মহিউদ্দিন আহম্মেদের সভাপতিত্বে প্রধান অতিথির বক্তব্য রাখেন সদরপুর সিদ্দিকীয়া দাখিল মাদরাসার পরিচালনা পরিষদের সভাপতি মাজেদুর আলম বাচ্চু। মাদরাসার সহকারী শিক্ষক হাবিবুর রহমানের পরিচালনায় বিশেষ অতিথির বক্তব্য রাখেন মাদরাসার ম্যানেজিং কমিটির সদস্য মোজ্জামেল হক, তহুরুল ইসলাম মানিক, রাজু আহম্মেদ, কাজেম আলী, জেসমিন আক্তার, সদরপুর ইউনিয়ন পরিষদের প্যানেল চেয়ারম্যান মাসুদ রেজা মাসেদ, বীর মুক্তিযোদ্ধা রাহাত আলী, আফসার আলী, সদরপুর ইউনিয়ন পরিষদের সাবেক ভারপ্রাপ্ত চেয়ারম্যান তাইজাল আলী, ব্যবসায়ী সাজেদুর রহমান, সদরপুর জামে মসজিদের ইমাম জমির উদ্দিন, মাদরাসার সহকারী সুপার আব্বাস উদ্দিন, সহকারী শিক্ষক কাঞ্চন কুমার হালদার, আবু হেনা মস্তফা কামাল, উকিল আলী, হামিদুল ইসলাম, আসাদুজ্জামান, আরজিনা খাতুন, খালেদা আক্তার, ওবাইদুল হক, মহিবুল হক, সাইদুল ইসলাম, মনিরুল ইসলাম, নার্গিস বানু, ক্বারী হাবিবুর রহমান, অফিস ষ্টাফ আশিকুল ইসলাম প্রমুখ। পরে শিক্ষার্থীদের মাঝে মেধা ভিত্তিক পুরষ্কার বিতরণ করেন অতিথিরা।

ভেড়ামারার ধরমপুর মাধ্যমিক বিদ্যালয়ে বাল্যবিবাহ, সন্ত্রাস ও মাদকমুক্ত সমাজ গঠনে ক্যাম্পেইন

আল-মাহাদী ॥ কুষ্টিয়ার ভেড়ামারায় জাতীয় মহিলা সংস্থার তত্ত্বাবধানে স্থানীয় সরকার বিভাগের উপজেলা পরিচালন ও উন্নয়ন প্রকল্প এবং জাপান ইন্টারন্যাশনাল কো-অপারেশন এজেন্সী (জাইকা)’র সহযোগিতায় গতকাল সোমবার সকাল ১০টায় ধরমপুর মাধ্যমিক বিদ্যালয়ের হলরুমে সন্ত্রাস, মাদকমুক্ত সমাজ গঠন, বাল্যবিবাহ প্রতিরোধ এবং যৌতুকের মত সামাজিক ব্যাধিকে দুর করতে বিভিন্ন শিক্ষা প্রতিষ্ঠানে সপ্তাহব্যাপী সচেতনতামূলক ক্যাম্পেইন এর অংশ হিসেবে ৩য় দিনের ক্যাম্পেইন অনুষ্ঠিত হয়। জাতীয় মহিলা সংস্থার সাবেক চেয়ারম্যান মাহফুজা লাইলীর সভাপতিত্বে অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথি ছিলেন ভেড়ামারা উপজেলা নির্বাহী অফিসার সোহেল মারুফ। উপজেলা জাতীয় মহিলা সংস্থার সমন্বয়কারী মোহাঃ আসমান আলী’র উপস্থাপনায় বিশেষ অতিথি ছিলেন ভেড়ামারা উপজেলা মহিলা সংস্থার চেয়ারম্যান মোছাঃ বলাকা পারভীন স্বপ্না, উপজেলা মহিলা ভাইস চেয়ারম্যান মোছাঃ ইন্দোনেশিয়া খাতুন, ধরমপুর ইউনিয়ন পরিষদের চেয়ারম্যান ও ধরমপুর মাধ্যমিক বিদ্যালয়ের ম্যানেজিং কমিটি’র সভাপতি শাহাবুল ইসলাম লালু, ধরমপুর মাধ্যমিক বিদ্যালয়ের প্রধান শিক্ষক গোলাম মোস্তফা, আওয়ামীলীগ নেতা খন্দকার আওরাঙ্গজেব সেলিম, ভেড়ামারা প্রেসক্লাবের যুগ্ন আহবায়ক এস.এম.আবু ওবাইদা-আল-মাহাদী প্রমূখ। অনুষ্ঠানের শুরুতেই সম্মানিত সকল অতিথিবৃন্দকে ফুল দিয়ে বরণ করে নেন বিদ্যালয়ের শিক্ষার্থীরা। উক্ত অনুষ্ঠানে বিদ্যালয়ের ২০০ ছাত্র-ছাত্রী অংশ গ্রহণ করেন।

মিরপুর মাধ্যমিক বালিকা বিদ্যালয়ে এসএসসি পরীক্ষার্থীদের বিদায় সংবর্ধনা

মিরপুর প্রতিনিধি ॥ কুষ্টিয়ার মিরপুর মাধ্যমিক বালিকা বিদ্যালয়ের ২০২০ সালের এসএসসি পরীক্ষার্থীদের বিদায় সংবর্ধনা ও ৬ষ্ঠ শ্রেণীর শিক্ষার্থীদের বরণ অনুষ্ঠান সম্পন্ন হয়েছে। গতকাল সোমবার দুপুরে বিদ্যালয় প্রাঙ্গণে এসএসসি পরীক্ষার্থীদের বিদায় ও ৬ষ্ঠ শ্রেণীর শিক্ষার্থীদের এ বরণ অনুষ্ঠান সম্পন্ন হয়। বিদ্যালয়ের প্রধান শিক্ষক কাজী মোঃ রোকনুজ্জামানের সভাপতিত্বে প্রধান অতিথি ছিলেন মিরপুর পৌরসভার মেয়র হাজী মোঃ এনামুল হক। বিশেষ অতিথি ছিলেন মহিলা কলেজের অধ্যক্ষ আনোয়ারুজ্জামান বিশ্বাস মজনু, উপজেলা জাসদের যুগ্ম সাধারন সম্পাদক কারশেদ আলম, জেলা পরিষদের সদস্য ও মিরপুর প্রেস ক্লাবের সভাপতি আলহাজ্ব মহাম্মদ আলী জোয়ার্দ্দার, সাধারন সম্পাদক রাশেদুজ্জামান রিমন, জাসদ নেতা হাফিজুর রহমান হাফিজ, ৯নং ওয়ার্ড কাউন্সিলর সান্টু, বিদ্যালয়ের সহকারী শিক্ষক মোঃ সিবলী আল ফারুক, জাকির হোসেন, আব্দুর রহিম, বিভাষ কুমার পাল, মোস্তাফিজুর রহমান মুস্তাক, শামসুন্নাহার প্রমুখ।

নিবন্ধন-নিরাপত্তার শর্ত না মানলে ডে-কেয়ারের জরিমানা

ঢাকা অফিস ॥ শিশু দিবাযতœ কেন্দ্র (ডে-কেয়ার সেন্টার) স্থাপনে নিবন্ধন বাধ্যতামূলক এবং শিশুদের নিরাপত্তার ঘাটতিতে সর্বোচ্চ ১০ লাখ টাকা জরিমানার বিধান রেখে একটি আইনের খসড়ায় সায় দিয়েছে সরকার। আইনের খসড়ায় নিবন্ধন ছাড়া শিশু দিবাযতœ কেন্দ্র স্থাপনে ৫০ হাজার টাকা জরিমানা করার কথা বলা হয়েছে। প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার সভাপতিত্বে গতকাল সোমবার সচিবালয়ে মন্ত্রিসভার নিয়মিত বৈঠকে ‘শিশু দিবাযতœ কেন্দ্র আইন, ২০২০’ এর খসড়ার নীতিগত অনুমোদন দেওয়া হয়েছে। বৈঠকের পর মন্ত্রিপরিষদ সচিব খন্দকার আনোয়ারুল ইসলাম বলেন, “নিবন্ধন পরিদপ্তর থেকে নিবন্ধন নিতে হবে। তিন বছরের জন্য নিবন্ধন দেওয়া হবে। অন্যসব বিষয় বিধি দিয়ে বিস্তারিতভাবে বলে দেওয়া হবে।” তিনি জানান, নিবন্ধন না করে শিশু দিবাযতœ কেন্দ্র স্থাপন করলে ৫০ হাজার টাকা জরিমানা করা হবে। সনদ প্রদর্শন না করা পর্যন্ত প্রতিদিন পাঁচ হাজার টাকা করে জরিমানা গুণতে হবে। “এছাড়া শিশু দিবাযতœ কেন্দ্র পরিদর্শনে বাধা দিলে ৫০ হাজার টাকা এবং দিবাযতœ কেন্দ্রে শিশুর নিরাপত্তা ঘাটতি থাকলে ১০ লাখ টাকা পর্যন্ত জরিমানার বিধান রাখা হয়েছে,” বলেন সচিব আনোয়ারুল। আইনটির প্রয়োজনীয়তা ব্যাখ্যায় মন্ত্রিপরিষদ সচিব বলেন, শিশুদের পরিচর্যার জন্য বিশ্বস্ত সহায়ক সেবাযতœ কেন্দ্রের অভাব পরিলক্ষিত হওয়ায় এই আইন প্রণয়ন করা হচ্ছে। “যেহেতু এখন যৌথ পরিবার প্রথাটা একটু কমে আসছে এবং নারীরা বেশি বেশি করে কাজে ইনভল্ব হয়ে যাচ্ছেন সেজন্য তাদের ছোট বাচ্চাদের দেখাশোনা করার জন্য শিশু দিবাযতœ কেন্দ্র প্রতিষ্ঠার জন্য আইন প্রণয়ন করা হচ্ছে।” প্রস্তাবিত আইনে চার ধরনের শিশু দিবাযতœ কেন্দ্রের কথা বলা হয়েছে। এগুলো হল- সরকারি ভর্তুকিপ্রাপ্ত; সরকার অথবা সরকারি কোনো দপ্তর, অধিদপ্তর, পরিদপ্তর, সংবিধিবদ্ধ সংস্থা অথবা কোনো স্বায়ত্তশাসিত সংস্থা কর্তৃক বিনামূল্যে পরিচালিত; ব্যক্তি বা প্রতিষ্ঠানের বাণিজ্যিক উদ্দেশ্যে পরিচালিত এবং ব্যক্তি, প্রতিষ্ঠান, বেসরকারি সংস্থা বা সংঘ বা সমিতি বা করপোরেট সেক্টর বা শিল্পখাত কর্তৃক অলাভজনক উদ্দেশ্যে পরিচালিত। মন্ত্রিপরিষদ সচিব বলেন, শিশু দিবাযতœ কেন্দ্রের সেবা, পুষ্টি, স্বাস্থ্য, নিরাপত্তা, চিকিৎসা, সুরক্ষা, বিনোদন, শিক্ষা, পরিবেশ ব্যবস্থাপনা বা অনুরূপ বিষয়গুলোর নির্ধারিত মান বিধি দিয়ে নিশ্চিত করা হবে। প্রতিটি কেন্দ্রে মাতৃদুগ্ধ পান করানোর জন্য আলাদা জায়গা রাখতে হবে জানিয়ে আনোয়ারুল বলেন, বিশেষ চাহিদাসম্পন্ন শিশুদের জন্যও দিবাযতœ কেন্দ্রে বিশেষ অবকাঠামো সুবিধা রাখতে হবে।

কুষ্টিয়ায় পাটজাত মোড়কের আইন ও বিধিমালার উদ্বুদ্ধকরণ সভা

নিজ সংবাদ ॥ কুষ্টিয়ায় “পণ্যে পাটজাত মোড়কের বাধ্যতামূলক ব্যবহার আইন-২০১০ এবং বিধিমালা-২০১৩” এর প্রয়োগ ও বাস্তবায়ন বিষয়ে পাট ও পাট সংশ্লিষ্ট স্টেকহোল্ডারদের সাথে উদ্বুদ্ধকরণ সভা অনুষ্ঠিত হয়েছে। গতকাল সোমবার সকালে কুষ্টিয়া পাট অধিদপ্তরের উদ্যোগে কুষ্টিয়া সদর উপজেলা পরিষদ মিলনায়তনে এ সভা অনুষ্ঠিত হয়। সদর উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা জুবায়ের হোসেন চৌধুরীর সভাপতিত্বে প্রধান অতিথির বক্তব্য রাখেন বস্ত্র ও পাট মন্ত্রনালয়ের উপসচিব মিজানুর রহমান। কুষ্টিয়ার পাট উন্নয়ন কর্মকর্তা আব্দুল হালিম হালিমের পরিচালনায় বিশেষ অতিথির বক্তব্য রাখেন কুষ্টিয়া কৃষি সম্প্রসারণ অধিদপ্তরের অতিরিক্ত উপপরিচালক (শস্য) রঞ্জন কুমার প্রামানিক, কুষ্টিয়া পাট অধিদপ্তরের মুখ্য পাট পরিদর্শক সোহবার উদ্দিন প্রমুখ। এসময় পাট ও পাটের সাথে জড়িত বিভিন্ন শ্রেনি পেশার প্রায় ১০০ জন  স্টেকহোল্ডার উপস্থিত ছিলেন। বক্তারা বলেন, আইনটি প্রয়োগ ও বাস্তবায়নের বিভিন্ন দিক এবং এ আইন প্রণয়নের সরকারের মহৎ উদ্যোগ। আইনটি যথাযথভাবে মেনে চলার জন্য উপস্থিত সকলের প্রতি বিশেষভাবে অনুরোধ জানান। এর আগে রবিবার কুষ্টিয়ার খোকসা উপজেলা পরিষদের হলরুমে জেলা পাট অধিদপ্তরের উগ্যোগে উন্নত প্রযুক্তি নির্ভর পাট ও পাটবীজ উৎপাদন এবং সম্প্রসারণ শীর্ষক প্রকল্পের পাটচাষীদের দিনব্যাপী প্রশিক্ষণ অনুষ্ঠিত হয়।

সিলেটে মৃদু ভূমিকম্প

ঢাকা অফিস ॥ সিলেট অঞ্চলে মৃদু ভূকম্পন অনুভুত হয়েছে। গতকাল সোমবার বেলা ১টা ১০ মিনিটে ভূমিকম্প অনুভুত হয় বলে জানিয়েছেন সিলেট আবহাওয়া অফিসের প্রধান অবহাওয়াবিদ সাঈদ আহমদ চৌধুরী। তিনি জানান, ভূমিকম্পের উৎপত্তিস্থল বাংলাদেশ-ভারত সীমান্তের সিলেটের গোয়াইনঘাট এলাকায়। উৎপত্তিস্থলে রিখটার স্কেলে যার মাত্রা ছিল চার দশমিক এক। তবে সিলেটের কোথাও কোন ধরনের ক্ষয়ক্ষতির খবর পাওয়া যায়নি ।

বাড়াদি মাধ্যমিক বালিকা বিদ্যালয়ে এসএসসি পরীক্ষার্থীদের বিদায় সংবর্ধণা

নিজ সংবাদ ॥ কুষ্টিয়া সদর উপজেলার বাড়াদি মাধ্যমিক বালিকা বিদ্যালয়ের এসএসসি পরীক্ষার্থীদের বিদায় সংবর্ধনা অনুষ্ঠিত হয়েছে। সোমবার সকাল ১১টায় বিদ্যালয় প্রাঙ্গণে অনুষ্ঠিত বিদায় অনুষ্ঠানে বক্তব্য রাখেন বিদ্যালয় পরিচালনা পর্ষদ’র সভাপতি বিশ্বনাথ সাহা বিশু। উপস্থিত ছিলেন বিদ্যালয়ের প্রধান শিক্ষক আরিফুর রহমান, বাড়াদি সরকারী প্রাথমিক বিদ্যালয় পরিচালনা পর্ষদ’র সভাপতি মতিয়ার রহমান মন্টু, ১৯নং ওয়ার্ড আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক ইন্তাজুল হক প্রমুখ। অনুষ্ঠানে বিদ্যালয়ের এসএসসি পরীক্ষার্থীদের বিদায় সংবর্ধণা দেয়া হয়। এসময় আসন্ন এসএসসি পরীক্ষায় যাতে করে সুস্থ শরীরে শিক্ষার্থীরা পরীক্ষায় অংশ নিয়ে ভালো ফলাফল করতে পারে সেই জন্য বিশেষ দোয়া অনুষ্ঠিত হয়। অনুষ্ঠানে বিদ্যালয়ের সকল শিক্ষার্থী, শিক্ষক ও পরিচালনা পর্ষদদের সদস্যরা উপস্থিত ছিলেন। উল্লেখ্য, বাড়াদী মাধ্যমিক বালিকা বিদ্যালয় পড়ালেখা, ক্রীড়া ও সংস্কৃতিতে গুরুত্বপূর্ণ অবদান রেখে চলেছে।

গাংনী সরকারী মাধ্যমিক বালিকা বিদ্যালয়ে পিঠা উৎসব 

গাংনী প্রতিনিধি ॥ মেহেরপুরের গাংনীতে পিঠা উৎসব অনুষ্ঠিত হয়েছে। সোমবার সকাল ১১টার দিকে গাংনী সরকারী মাধ্যমিক বালিকা উচ্চ বিদ্যালয় পিঠা উৎসবের আয়োজন করে। উৎসবে ১৫টি স্টলে শতাধিক রকমের পিঠা প্রদর্শন করে বিদ্যালয়ের ছাত্রীরা। উৎসব অনুষ্ঠানে সভাপতিত্ব করেন বিদ্যালয়ের প্রধান শিক্ষক আশরাফুজ্জামান লালু। প্রধান অতিথি ছিলেন গাংনী উপজেলা নির্বাহী অফিসার দিলারা রহমান। বিশেষ অতিথি ছিলেন উপজেলা মাধ্যমিক শিক্ষা অফিসার মীর হাবিবুল বাসার, সহকারী শিক্ষা অফিসার মনিরুল ইসলাম, উপজেলা শিক্ষা অফিসার (প্রাথমিক বিদ্যালয়) আলাউদ্দীন, বিশিষ্ট সাংস্কৃতিক ব্যক্তিত্ব সিরাজুল ইসলাম। এসময় উপস্থিত ছিলেন উপজেলা মাধ্যমিক শিক্ষা অফিসের একাডেমীক সুপারভাইজার আব্দুল-আল মাসুম, গাংনী থানার এসআই মাহাতাব হোসেন, গাংনী উপজেলা প্রেসক্লাবের সভাপতি আমিরুল ইসলাম অল্ডাম, সাংবাদিক জুলফিকার আলী কানন প্রমুখ। অনুষ্ঠান সঞ্চালনা করেন বিদ্যালয়ের সহকারী শিক্ষক সুমন আলী।

নর্থ ওয়েস্টার্ন ইউনিভার্সিটির ১ম বর্ষ ১ম সেমিস্টারের ছাত্র-ছাত্রীদের ওরিয়েনটেশন অনুষ্ঠিত

নর্থ ওয়েস্টার্ন ইউনিভার্সিটির ১ম বর্ষ ১ম সেমিস্টারের ছাত্র-ছাত্রীদের ওরিয়েন্টেশন প্রোগ্রাম-২০২০ সোমবার খুলনা কনভেনশন সেন্টারে অনুষ্ঠিত হয়। অনুষ্ঠানের শুরুতেই নবীন শিক্ষার্থীদের ফুল এবং ক্রেস্ট দিয়ে বরণ করে নেওয়া হয়। বিশ্ববিদ্যালয়ের বিজ্ঞান অনুষদের ডীন প্রফেসর ড. মোঃ  নওশের আলী মোড়লের সভাপতিত্বে অনুষ্ঠিত ওরিয়েন্টেশন প্রোগ্রামে প্রধান অতিথি ছিলেন নর্থ ওয়েস্টার্ন ইউনিভার্সিটির ভাইস-চ্যান্সেলর প্রফেসর ড. তারাপদ ভৌমিক। স্বাগত বক্তব্য রাখেন নর্থ ওয়েস্টার্ন ইউনিভার্সিটির রেজিস্ট্রার মোঃ শহীদুল ইসলাম। বিশেষ অতিথি ছিলেন বিশ^বিদ্যালয়ের ট্রেজারার প্রফেসর সুধীর কুমার পাল। এছাড়াও উপস্থিত ছিলেন বিভিন্ন বিভাগের বিভাগীয় প্রধানগণ, প্রক্টর, সহকারি প্রক্টর, শিক্ষকমন্ডলী, সহকারি রেজিস্ট্রার, বিশ্বিবিদ্যালয়ের বিভিন্ন স্তরের কর্মকর্তা-কর্মচারীবৃন্দ, ছাত্র-ছাত্রী এবং প্রিন্ট ও ইলেকট্রনিক্স মিডিয়ার সাংবাদিকবৃন্দ। আলোচকবৃন্দ বাংলাদেশের স্বাধীনতা অর্জনে মহান নেতা বঙ্গবন্ধু ও বীর বাঙালীর অসাধারণ অবদান শ্রদ্ধাভরে স্মরণ করেন এবং সকল শ্রেণী পেশার মানুষের বাংলাদেশের সঠিক ইতিহাস চর্চার বিষয়ে গুরুত্বারোপ করেন। ছাত্র-ছাত্রীদেরকে উচ্চ শিক্ষার সর্বোচ্চ এ বিদ্যাপিঠে লেখাপড়ার নিয়ম-শৃংখলা ও সার্বিক সুষ্ঠু পরিবেশ বজায় রেখে জ্ঞানার্জনের জন্য বিশেষ আহ্বান করা হয়। এছাড়াও শিক্ষার্থীরা যাতে তাদের দক্ষতার উৎকর্ষ সাধনে সচেষ্ঠ থাকতে পারে সে বিষয়ে শিক্ষকমন্ডলী দায়িত্বশীল ভূমিকা পালন করবেন বলে আশ^স্ত করা হয়। পাশাপাশি বিজ্ঞান, তথ্য-প্রযুক্তিভিত্তিক বর্তমান যুগের প্রেক্ষাপটে ছাত্র-ছাত্রীবৃন্দ প্রযুক্তি নির্ভর প্রকৃত শিক্ষা অর্জনের মাধ্যমে দক্ষ জনশক্তিতে পরিণত হয়ে দেশ ও জাতির কল্যাণে আত্মনিয়োগ করবে এবং ডিজিটাল বাংলাদেশ নির্মাণে দায়িত্বশীল ভূমিকা পালন করে প্রতিযোগিতামূলক বিশে^ এ দেশের ভাবমূর্তি উজ্জ্বল করবেÑএই আশাবাদ ব্যক্ত করেন বক্তারা। সংবাদ বিজ্ঞপ্তি

কুষ্টিয়ায় শিক্ষা প্রকৌশল অধিদপ্তরের কাজের মাসিক অগ্রগতির পর্যালোচনা সভা

নিজ সংবাদ ॥ শিক্ষা প্রকৌশল অধিদপ্তর কুষ্টিয়া জেলার বাস্তবায়নাধীন প্রকল্পের নির্মাণ, পুনঃনির্মাণ মেরামত ও আসবাবপত্র সরবরাহ কাজের মাসিক অগ্রগ্রতির পর্যালোচনা সভা অনুষ্ঠিত হয়েছে। গতকাল সোমবার সকাল ১০টায় কুষ্টিয়া শিক্ষা প্রকৌশল অধিদপ্তরের হলরুমে কুষ্টিয়া, চুয়াডাঙ্গা ও মেহেরপুর জেলার সহকারী ও উপ-সহকারী প্রকৌশলীদের নিয়ে দিনব্যাপী এই পর্যালোচনা সভা অনুষ্ঠিত হয়। কুষ্টিয়া জোনের নির্বাহী প্রকৌশলী আ.ট.ম মারুফ-আল-ফারুকী’র সভাপতিত্বে সভায় উপস্থিত ছিলেন কুষ্টিয়ার সহকারী প্রকৌশলী সাহেব আলী, উপ-সহকারী শাহীনুর খানম, শাহীনুজ্জামান, জাকির হোসেন, মেহেরপুর জেলার সহকারী প্রকৌশলী সুব্রত কুমার পাল, উপ-সহকারী প্রকৌশলী মেহেদী হাসান, আবদুল আলীম, চুয়াডাঙ্গা জেলার উপ-সহকারী প্রকৌশলী জামাল হোসেন, মোস্তফা কামাল, ফজলুর রহমান প্রমুখ। বক্তাগন কুষ্টিয়া, চুয়াডাঙ্গা ও মেহেরপুর অঞ্চলের স্কুল, কলেজ, মাদ্রাসা নির্মাণ ও সংস্কার কাজের অগ্রগতি ও মানোন্নয়ন বিষয়ে দিনব্যাপী আলোচনা ও পর্যালোচনা করেন।

দৌলতপুরে ১০ বছরের সাজাপ্রাপ্ত পলাতক আসামী গ্রেফতার

দৌলতপুর প্রতিনিধি ॥ কুষ্টিয়ার দৌলতপুরে জিআর মামলার ১০ বছরের সাজাপ্রাপ্ত পলাতক আসামী গ্রেফতার হয়েছে। গতকাল সোমবার উপজেলার হরিনগাছী এলাকা থেকে সেলিম আহমেদ ওরফে রকি (২২) নামে ওই সাজাপ্রাপ্ত পলাতক আসামীকে গ্রেফতার করে দৌলতপুর থানা পুলিশ। সে হরিনগাছী হাজীপাড়া এলাকার গোলাম সরোয়ারের ছেলে। দৌলতপুর থানার ওসি এস এম আরিফুর রহমানের নির্দেশে দৌলতপুর থানার এএসআই আলী হাসান তাকে গ্রেফতার করে।

নির্বাচন নিয়ে বিদেশীদের কাছে নালিশ করাও একধরনের আচরণ বিধি লংঘন – তথ্যমন্ত্রী

ঢাকা অফিস ॥ তথ্যমন্ত্রী ও আওয়ামী লীগের যুগ্ম সাধারণ সম্পাদক ড. হাছান মাহমুদ বলেছেন, নির্বাচন নিয়ে বিদেশীদের কাছে নালিশ করাও একধরনের নির্বাচনী আচরণ বিধি লংঘন। তিনি বলেন, ‘যে কোন নির্বাচন নিয়ে বিদেশিদের কাছে নালিশ উপস্থাপন করা এবং নির্বাচনী প্রচার-প্রচারণা নিয়ে ছোট খাটো যে ঘটনা গুলো হচ্ছে, সেগুলো বিদেশীদের কাছে উপস্থাপন করাও তো এক প্রকার নির্বাচনী আচরণ বিধি লংঘন।’ হাছান মাহমুদ গতকাল সোমবার দুপুরে সচিবালয়ে নিজ দপ্তরে সংবাদ সম্মেলনে সাংবাদিকদের প্রশ্নের জবাবে এ কথা বলেন। আওয়ামী লীগের যুগ্ম সাধারণ সম্পাদক বলেন, ‘ইভিএম নিয়ে বিএনপি হাইকোর্টে গিয়েছিল। সবচেয়ে বড় কথা হচ্ছে তারা হাইকোর্টে গিয়েছিল ইভিএম এর বিরুদ্ধে। হাইকোর্ট তাদের পক্ষে রায় দেয়নি। সর্বোচ্চ আদালতে তাদের অবেদন রিজেক্ট করে দিয়েছে।’ তিনি বলেন, ‘যেখানে হাইকোর্ট তাদের পক্ষে রায় দেয়নি, আবার সেই একই নালিশ বিদেশিদের কাছে গিয়ে উপস্থাপন করা তো আদালত অবমাননার শামিল এবং যে কোন নির্বাচন নিয়ে বিদেশিদের কাছে অভিযোগ করা এটিও তো আচরন বিধি লংঘন।’ হাছান মাহমুদ বলেন, বিএনপির কোন অভিযোগ থাকলে তা ভোটার ও জনগনের কাছে উপস্থাপন করবে। স্থানীয় সরকার নির্বাচনের বিষয়ে বিদেশী রাষ্ট্রদুতের কাছে উপস্থাপন করা অনেকেই মনে করেন এটিও এক প্রকার আদালত আবমাননার শামিল। বিএনপির অভিযোগ প্রসঙ্গে তিনি বলেন, ইভিএম হচ্ছে একটি অধুনিক প্রযুক্তি। পুরো ভারত বর্ষের সাধারণ নির্বাচনে ইভিএম এর মাধ্যমে ভোট গ্রহণ হয়েছে এবং ভারতে এই ভোট গ্রহণ বিষয়ে তেমন কোন অভিযোগ ওঠেনি। যুক্তরাষ্ট্রেও ইভিএম এর মাধ্যমে ভোট গ্রহণ হয়েছে। হাছান মাহমুদ বলেন, এই অধুনকি প্রযুক্তি দিয়ে কেন ভোট গ্রহণের বিরোধীতা করছে বিএনপি তা আমরা বোধগম্য নয়। তবে বিএনপি সব সময়ে অধুনিক প্রযুক্তির বিরোধীতা করে। কারণ তারা প্রযুক্তিকে ভয় পায়। তথ্যমন্ত্রী বলেন, বিএনপি যখন ক্ষমতায় ছিল তখন বিনামূল্যে সাবমেরিন ক্যাবল বাংলাদেশকে দিতে চেয়েছিল। কিন্তু তখনকার সরকার প্রধান খালেদা জিয়া সাবমেরিন ক্যাবল সুবিধা গ্রহণ করেননি। কারণ তিনি ভেবে ছিলেন যে দেশের অভ্যন্তরিন গোপন তথ্য ফাঁস হয়ে যাবে। কিন্তু পরবর্তিতে আওয়ামী লীগের সরকারের সময় কয়েক হাজার কোটি টাকা খরচ করে সাবমেরিন ক্যাবলের সাথে সংযুক্ত হতে হয়েছে। তিনি বলেন, ইভিএম এর ক্ষেত্রেও বিএনপির মানসিকতা একই রকম। দেশে এক সময়ে হাত তুলে ভোট হত। পরবর্তিতে ব্যালোটের মাধ্যমে ভোট নেয়া শুরু হয়। ইভিএম ইতিপূর্বে বিভিন্ন নির্বাচনে ব্যবহার করা হয়েছে। স্থানীয় নির্বাচন ও সংস্দ নির্বাচনের ইভিএম ব্যবহার হয়েছে। এতে দেখা গেছে কেন্দ্র দখল, ব্যালটে সিল মারার তেমন কোন অভিযোগ আসেনি। কিন্তু তারপরও তারা ইভিএম নিয়ে অভিযোগ করছে। হাছান মাহমুদ বলেন, নির্বাচনে তারা পরিজিত হবে তা বুঝতে পেরে আগে থেকেই নির্বাচনকে বিতর্কিত করার পথ তৈরি করার চেষ্টা করছে। এক প্রশ্নের জবাবে তথ্যমন্ত্রী বলেন, নির্বাচন কমিশনার পদটি একটি সাংবিধানিক পদ। যেমন হাইকোর্টের বিচারপতি, সেগুলোও সাংবিধানিক পদ। হাইকোর্টের কোন বিচারপতি যেমন তাদের অভ্যন্তরিন বিষয় জনগনের সামনে উপস্থাপন করেন না এবং সেটি নিয়মও নয়। সাংবিধানিক পদে থেকে সেটি করা সমিচিন নয়। এটি একান্তই অভ্যন্তরিন বিষয়। তাই সাংবিধানিক পদে থেকে নিজেদের কর্মপরিবেশ নিয়ে নিজেদের ফোরামে কথা বলাই ভাল। সেটি জনসমুখে বিশেষ করে গণমাধ্যমের সামেনে বলা, সেটি তার সাংবিধানিক পদের বর খেলাপ কিনা সে বিষয়ে অনেকেই প্রশ্নে তুলেছেন।

গাংনীতে মোটরসাইকেলের ধাক্কায় স্কুল ছাত্রী নিহত

গাংনী প্রতিনিধি ॥ মেহেরপুরের গাংনীতে মোটরসাইকেলের ধাক্কায় জেবা খাতুন (৯) নামের এক স্কুল ছাত্রী নিহত হয়েছে। নিহত জেবা গাংনী উপজেলার রাইপুর ইউনিয়নের ইকুড়ি সরকারী প্রাথমিক বিদ্যালয়ের তৃতীয় শ্রেণীর ছাত্রী ও ইকুড়ি গ্রামের জসিম উদ্দীনের মেয়ে। গতকাল সোমবার দুপুর ১২টার দিকে গাংনী-হাটবোয়ালিয়া সড়কের ইকুড়ি আখ  সেন্টারের নিকট দ্রুতগামি একটি মোটরসাইকেলের ধাক্কায় জেবা খাতুন মারা যায়। জেবার চাচা হামিদুল ইসলাম রতন  জানান জেবার খালাতো ভাই পার্শ্ববর্তি চুয়াডাঙ্গার আলমডাঙ্গা উপজেলার ঝুটিডাঙ্গা গ্রাম থেকে তাদের বাড়িতে আসছিল। জেবা তার খালাতো ভাইকে এগিয়ে নেয়ার জন্য ইকুড়ি গ্রামের আখ সেন্টারের কাছে রাস্তা পারাপারের সময় দ্রুতগামি মোটরসাইকেল তাকে ধাক্কায় দেয়। ওই ধাক্কায় সে ছিটকে পড়ে গুরুতর আহত হয়। পথচারীরা তাকে উদ্ধার করে গাংনী উপজেলা স্বাস্থ্যকমপ্লেক্সে নিলে কর্তব্যরত ডাক্তার মৃত ঘোষণা করেন। এদিকে মোটরসাইকেল চালক আলমডাঙ্গা উপজেলার কেশবপুর গ্রামের খেদ আলীর ছেলে হক সাহেবকে (২৫) গাংনী থানা পুলিশ আটক করেছে। গাংনী থানার ওসি ওবাইদুর রহমান ঘটনার সত্যতা নিশ্চিত করেছেন। এদিকে গতকাল সোমবার দুপুরে কুষ্টিয়া-মেহেরপুর সড়কের ছাতিয়ান নামক স্থানে ইজিবাইক খাদে পড়ে গাংনী উপজেলার মোহাম্মদপুর গ্রামের রেহেনা খাতুন (২৫), শিউলি(২০), সফুরা(৬৫), স¤্রাট (১৫), নাজমা (৩২) ও অটো চালক শাজাহান আলী আহত হয়েছে। আহতদের বামন্দীর বিভিন্ন ক্লিনিকে ভর্তি করা হয়েছে।

গোপীবাগের ঘটনায় দোষীদের খুঁজে বের করতে কমিশনের প্রতি আহ্বান ওবায়দুল কাদেরের

ঢাকা অফিস ॥ রাজধানীর গোপীবাগে সিটি করপোরেশ নির্বাচনী প্রচারণার সময় সংঘর্ষের ঘটনায় দোষীদের খুঁজে বের করতে কমিশনের প্রতি আহ্বান জানিয়েছেন আওয়ামী লীগ সাধারণ সম্পাদক এবং সড়ক পরিবহন ও সেতুমন্ত্রী ওবায়দুল কাদের। গতকাল সোমবার সচিবালয়ে সড়ক পরিবহন ও মহাসড়ক বিভাগের সম্মেলন কক্ষে আয়োজিত সংবাদ সম্মেলনে সাংবাদিকদের এক প্রশ্নের জবাবে তিনি এই আহবান জানান। ওবায়দুল কাদের বলেন, ‘সেখানে ভিডিও ফুটেজ আছে। গুলি কোন পক্ষ থেকে এসেছে, অফিসে লাথি মারা, এগুলোর ভিডিও ফুটেজে আছে। নির্বাচন কমিশনের উচিত সঠিক তদন্ত করা। সত্য উদঘাটন করা।’ বিএনপির অভিযোগের জবাবে তিনি বলেন, ‘ভিডিও ফুটেজে যেটি আছে তাতে সেটি মনে হয় না। বিএনপি কিছু কিছু অভিযোগ আনছে যেগুলো একেবারেই অন্ধকারে ঢিল ছোঁড়ার মতো।’ মাহবুব তালুকদারের বক্তব্যের বিষয়ে জানতে চাইলে কাদের বলেন, এটি নির্বাচন কমিশনের অভ্যন্তরীণ বিষয়। সেখানে একজন কমিশনার ভিন্নমত পোষণ করতেই পারেন। কিন্তু তিনি (মাহবুব তালুকদার) কথায় কথায় যেভাবে তাদের ঘরের বিষয়, অভ্যন্তরীণ প্রক্রিয়া বাইরে নিয়ে আসছেন, সেটা অবশ্যই সমর্থনযোগ্য নয়। ওবায়দুল কাদের বলেন, নির্বাচন কমিশনের ভিতরে আবার লেভেল পে¬য়িং বিষয় কী? তিনি (মাহবুব তালুকদার) ভিন্নমত পোষণ করতেই পারেন। তবে ইদানীং বিএনপি যে সুরে কথা বলছে, একই সুরে মাহবুব তালুকদারও কথা বলছেন। মনে হয়, তিনি একটা পক্ষ নিয়ে এ ধরনের বক্তব্য দিয়ে যাচ্ছেন। তিনি বলেন, এটা নিয়ে আমরা কথা বলবো। আপাতো দৃষ্টিতে মনে হবে প্রত্যেকেই নিজের পক্ষে কথা বলছে। বিএনপি তাদের কথা বলছে। বিদেশি রাষ্ট্রদূতদের উনারা (বিএনপি) বুঝাতে চাইছেন যে, আক্রমনটা আওয়ামী লীগের পক্ষ থেকে হয়েছে। কিন্তু বাস্তবে ভিডিও ফুটেজে যা কিছু আছে তাতে কিন্তু সেটা মনে হয় না। ইসিকে আরও কঠোর হওয়ার আহ্বান জানিয়ে সড়ক পরিবহন ও সেতুমন্ত্রী বলেন, নির্বাচনের বর্তমান উৎসব মুখর পরিবেশে অব্যাহত রাখতে নির্বাচন কমিশনকেই উদ্যোগ নিতে হবে। আইন-শৃঙ্খলা রক্ষাকারী বাহিনীর সদস্যরা এখন কমিশনের নিয়ন্ত্রণে। যারা পরিবেশ নষ্ট করছেন, তাদের বিরুদ্ধে কমিশনই ব্যবস্থা নিতে পারেন। শেষ সময়ে আমরা কোনো প্রার্থীকে আটক বা হয়রানি করতে নির্দেশ দিচ্ছি না।

আইলচারা মাধ্যমিক বিদ্যালয়ের অনুষ্ঠানে আতাউর রহমান আতা

উচ্চ শিক্ষায় শিক্ষিত হওয়ার পাশাপাশি নৈতিক শিক্ষায় বলীয়ান হতে হবে

সুজন কর্মকার ॥ কুষ্টিয়া সদর উপজেলা পরিষদের চেয়ারম্যান ও শহর আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক আতাউর রহমান আতা বলেছেন, সত্যিকারের মানুষ হিসেবে গড়ে উঠতে একজন শিক্ষার্থীর উচ্চ শিক্ষা যেমন প্রয়োজন, তেমনি নৈতিকতা শিক্ষারও প্রয়োজন রয়েছে। উচ্চ শিক্ষাই শিক্ষিত হওয়ার পাশাপাশি শিক্ষার্থীদের নৈতিক শিক্ষায় বলীয়ান হতে হবে। আতাউর রহমান আতা আরো বলেন, শিক্ষার্থীদের ভেতরে যে সুপ্ত প্রতিভা, সম্ভাবনা লুকিয়ে থাকে তা শক্তিতে রূপান্তরের মাধ্যম হচ্ছে শিক্ষা। সেই শিক্ষার আলো সমাজকে আলোকিত করতে পারে। এ লক্ষ্যে আমাদের নিরন্তর প্রচেষ্টা অব্যাহত রয়েছে। কুষ্টিয়া সদর উপজেলার আইলচারা মাধ্যমিক বিদ্যালয়ে নবীণ বরণ, এস এস সি পরীক্ষার্থীদের বিদায় এবং বার্ষিক ক্রীড়া প্রতিযোগিতা অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথির বক্তব্যে তিনি এসব কথা বলেন। এ সময় সদর উপজেলা আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক রেজাউল হক, আইলচারা মাধ্যমিক বিদ্যালয়ের সভাপতি খাকছার আলী জোয়ার্দ্দার, প্রধান শিক্ষক রবিউল ইসলাম, আইলচারা ইউনিয়ন পরিষদ চেয়ারম্যান সিদ্দিদুর রহমান, অন্যান্য শিক্ষক-শিক্ষার্থী-অভিভাবকসহ আওয়ামী লীগ ও এর অঙ্গসহযোগি সংগঠনের শত শত নেতৃবৃন্দ উপস্থিত ছিলেন।

খোকসায় ট্রাক উল্টে চালক ও সহযোগী আহত

খোকসা প্রতিনিধি ॥ কুষ্টিয়া-রাজবাড়ী আঞ্চলিক মহাসড়কের খোকসায় পাথর বোঝাই ট্রাক উল্টে চালক ও তার সহযোগী গুরুতর আহত হয়েছে। প্রত্যক্ষদর্শী সূত্রে জানা গেছে, সোমবার সকাল সাতটার দিকে কুষ্টিয়া-রাজবাড়ী আঞ্চলিক মহাসড়কের খোকসা বাসস্ট্যান্ডের অদূরে একটি পাথর বোঝাই ট্রাক নিয়ন্ত্রন হারিয়ে সড়কের ওপর উল্টে যায় (ঢাকা মেট্রো ট ২২-৬৭১৯)।  দুর্ঘটনার সময় চালকের সহকারী ট্রাকটি চালাচ্ছিল। এতে আহত ড্রাইভার সাদ্দাম (২৮), ও সহযোগী মাসুদ (৩০) কে স্থানীয়রা উদ্ধার করে উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে ভার্তি করে। আহতরা মাগুড়ার নলডাঙ্গা ইউনিয়নের বলিদা পাড়ার বাসিন্দা। উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সের চিকিৎসক ডাঃ সায়েম জানান, আহতদের হাসপাতলে ভর্তি করা হয়েছে। তবে চালকের পিঠের বেশী অংশের চামড়া উঠে গেছে।

কুষ্টিয়া গণপূর্ত বিভাগের হিসাব সহকারী টিপুর বিরুদ্ধে টেন্ডারবাজীর অভিযোগ

বিশেষ প্রতিনিধি ॥ কুষ্টিয়া গণপূর্ত বিভাগের হিসাব সহকারী মোঃ আশরাফুল ইসলাম টিপুর বিরুদ্ধে টেন্ডারবাজীর অভিযোগ উঠেছে। একাধিক সূত্রে পাওয়া তথ্যে জানা জানা যায়- এই হিসাব সহকারী টিপু বিএনপি’র কর্মী হিসেবে তৎকালীন গণপূর্ত মন্ত্রী  মির্জা আব্বাসের মাধ্যমে হিসাব সহকারী পদে নিয়োগপ্রাপ্ত হয়ে ২০০৬ সালে চুয়াডাঙ্গা গণপূর্ত বিভাগে যোগদান করেন। তিনি নির্বাহী প্রকৌশলীকে ম্যানেজ করে  চুয়াডাঙ্গা গণপূর্ত বিভাগের অফিস তথা টেন্ডার প্রক্রিয়া নিয়ন্ত্রনে নিয়ে প্রায় দীর্ঘ ১৪/১৫ বৎসর  টেন্ডারবাজী করে অবৈধভাবে অর্থ উপার্জন করেছে। তার এহেন কার্যকলাপে তার বিরুদ্ধে দুর্নীতি দমন কমিশন (দুদক)-এ অভিযোগ হয়। এক পর্যায়ে তিনি দুদকের হাত থেকে আড়াল হতে নিজ জেলা কুষ্টিয়া গণপূর্ত বিভাগে বদলী হয়ে আসে। সূত্র জানা যায়, কুষ্টিয়াতে বদলী হতে আসার পর বেশ কিছুদিন নীরব থেকে তৎসময়ের নির্বাহী প্রকৌশলী  মোঃ শফিউল হান্নান (বর্তমানে সাময়িক বরখাস্ত) সাথে যোগসাজোসে টেন্ডারবাজী করে তাদের  মনোনীত ঠিকাদারকে কাজ পাইয়ে দিয়ে কোটি কোটি টাকা হাতিয়ে নেয়। বর্তমান নির্বাহী প্রকৌশলী দক্ষ ও বিচক্ষন অফিসারে মধ্যে একজন। তাঁর কাছেও তিনি আস্থাভাজন হয়ে ওঠে। বর্তমান নির্বাহী প্রকৌশলীর চোখের আড়ালে টিপু একাই পুরা অফিসসহ  টেন্ডার প্রক্রিয়া নিয়ন্ত্রন করে মনোনীত ঠিকাদারকে কাজ পাইয়ে দেয় এবং ২/১ জনের  সাথে কাজের পার্টনার আছে বলে জানা গেছে। এক পর্যায়ে স্থানীয় ঠিকাদারবৃন্দ তার বিরুদ্ধে নির্বাহী প্রকৌশলীর কাছে মৌখিক অভিযোগ করেন। তাতেও কোন প্রতিফলন হয় নাই। এভাবে অবৈধ উপার্জন করে তিনি নামে/ বেনামে কুষ্টিয়া শহরের হাউজিংএ পৈত্রিক ভিটায়  তিনতলা ভবন নির্মাণ করেন এবং  হাউজিং এ আরো দুটি প্লট আছে তার নামে। কুষ্টিয়া শহরের এন,এস রোডে  থানা মোড় মার্কেটে দোকান রয়েছে।  শেয়ার বাজারেও  প্রায় অর্ধ কোটি টাকার লেন-দেন রয়েছে এই হিসাব সহকারী টিপুর। তিনি বেতন পান ২৫ হাজার টাকা অথচ জীবন বীমা শিক্ষাবৃত্তি ইন্সুরেন্সে মাসিক ২৫ হাজার টাকা করে প্রিমিয়াম হিসাবে কিস্তি দেন। ১৫/২০ দিন আগে তিনি হিসাব সহকারী থেকে প্রমোশন পেয়ে হিসাব রক্ষক হিসাবে নিলফামারী  গণপূর্ত বিভাগে যোগদান করেন। সেখানে কর্মরত অবস্থায় এখনও কুষ্টিয়া গণপূর্ত বিভাগের টেন্ডার নিয়ন্ত্রন করছে বলে অভিযোগ পাওয়া গেছে। জানা গেছে তিনি নিলফামারী থেকে এসে   গতক ২৫ জানুয়ারি কুষ্টিয়া গণপূর্ত বিভাগে উপ-সহকারী প্রকৌশলীদের নিয়ে টেন্ডার সংক্রান্ত কাজ নিয়ে মিটিং করেন (যা সিসিটিভি’র ফুটেজ দেখলে জানা যাবে)। স্থানীয় ঠিকাদারবৃন্দ অভিযোগ করেও প্রতিকার না পেয়ে আতঙ্কে আছে অনেকে। মোবাইল ফোনে তার সাথে যোগাযোগের চেষ্টা করা হলে তিনি ফোন রিসিভ করেননি। আশরাফুল ইসলাম টিপু’র অবৈধ সম্পদের সুষ্ঠু তদন্তসহ তার এই টেন্ডারবাজীর বিরুদ্ধে আইনগত ব্যবস্থা গ্রহনের জন্য দাবী জানিয়েছেন ঠিকাদারগণ।

বিএসএমএমইউর পরিচালকের বক্তব্য মনগড়া – বিএনপি

ঢাকা অফিস ॥ বিএনপির চেয়ারপারসন কারাবন্দি বেগম খালেদা জিয়ার স্বাস্থ্য বিষয়ে বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিব মেডিক্যাল বিশ্ববিদ্যালয় (বিএসএমএমইউ) যে বিবৃতি দিয়েছে সেটাকে মনগড়া ও পরিকল্পিত মিথ্যাচার বলে ঘৃণাভরে প্রত্যাখ্যান করেছে বিএনপি। অবিলম্বে বেগম খালেদা জিয়াকে নিঃশর্ত মুক্তি ও সুচিকিৎসার ব্যবস্থা গ্রহণ করতে দাবি জানিয়েছে দলটি। বিএনপির সিনিয়র যুগ্ম মহাসচিব রুহুল কবির রিজভী গতকাল সোমবার দুপুরে ১ টায় দলের কেন্দ্রীয় কার্যালয়ে সংবাদ সম্মেলনে এসব কথা বলেন। লিখিত বক্তব্যে রুহুল কবির রিজভী বলেন, ‘বেগম খালেদা জিয়াকে বন্দি রেখে হত্যার আয়োজন সম্পন্ন করেছেন সরকার। তাকে দেখে এসে তার স্বজনরা কান্নাভেজা কণ্ঠে জানিয়েছেন, দিন দিন অবস্থার আরো অবনতি হচ্ছে। সারাক্ষণ বমি করছেন। তার গায়ে প্রচ- জ্বর। সারাক্ষণ তীব্র ব্যথার যন্ত্রণায় কাতরাচ্ছেন। বাম হাত সম্পূর্ণ বেঁকে গেছে। বিএসএমএমইউ হাসপাতালে নামকাওয়াস্তে যে চিকিৎসা দেওয়া হচ্ছে, তাতে কোনো কাজ হচ্ছে না। তার যে ভয়াবহ অবস্থা, দ্রুত উন্নত চিকিৎসার বন্দোবস্ত করতে হবে। তার শরীর খুবই খারাপ। শারীরিক অবস্থার অবনতির কারণে বেগম খালেদা জিয়া কথা বলতে পারছেন না। সেখানে ভর্তির পর এখনো তার ডায়াবেটিস নিয়ন্ত্রণে আসেনি, তিনি বিছানা থেকে উঠতে পারছেন না, কিছু খেতে পারছেন না, হাত পা নাড়াতে পারছেন না। তিনি স্বাভাবিকভাবে চলাফেরা করতে পারছেন না।’ তিনি বলেন,‘যথাযথ চিকিৎসার অভাবে তার শারীরিক অসুস্থতা গভীর সংকটাপন্ন। অথচ বিএসএমএমইউ হাসপাতালের মেডিক্যাল বোর্ডও তার অসুস্থতা যে দেশে নিরাময়যোগ্য নয় সেটি উল্লেখ করলেও আদালত তাকে জামিন দেয়নি। ন্যায়বিচারহীনতার এই বিপজ্জনক ছবি পৃথিবীতে বিরল।’ রিজভী বলেন, ‘বিএসএমএমইউর পরিচালক অসুস্থতা নিয়ে এক সংবাদ বিবৃতি দিয়েছেন। এই বিবৃতি মূলত: শেখ হাসিনারই ফরমান। বিজ্ঞপ্তিতে বলা হয়েছে- বেগম খালেদা জিয়ার শারীরিক অবস্থা কোনো কোনো ক্ষেত্রে আশানুরূপ উন্নতি হলেও কোনো কোনো ক্ষেত্রে স্থিতিশীল রয়েছে, তার ডায়াবেটিস নিয়ন্ত্রণে আছে, মুখের ঘা সেরে গেছে, দাঁতের ব্যথা ভাল হয়েছে, শারীরিক দুর্বলতার উন্নতি হয়েছে, আর্থারাইটিসের ব্যথা কমানোর জন্য আধুনিক চিকিৎসা সেবা প্রদানে তাঁকে পরামর্শ দেওয়া হয় কিন্তু তিনি নাকি আর্থারাইটিসের চিকিৎসা নিতে সম্মতি জ্ঞাপন করেননি, ফলে আর্থারাইটিসের আশানুরুপ উন্নতি হচ্ছে না।’ তিনি আরো বলেন, ‘পরিচালকের এসকল বক্তব্য সম্পূর্ণ অসত্য, মনগড়া ও ফরমায়েশি বিবৃতি। সেখানে আধুনিক যন্ত্রপাতি নেই বলেই তো কাদের সাহেবরা বিদেশে চিকিৎসা নেন। শেখ হাসিনা কারাবন্দি থাকা অবস্থায় স্কয়ার কিংবা বিদেশে চিকিৎসা নিয়েছেন। গণভবনে বসে শেখ হাসিনার তৈরি করা সংবাদ বিজ্ঞপ্তিটি বিএসএমএমইউ হাসপাতালের নামে প্রচার করা হয়েছে। সেখানে ইনিয়ে বিনিয়ে বেগম জিয়াকে সুস্থ বলে প্রচারের অপপ্রয়াস চালানো হয়েছে। এর প্রতিটি শব্দ, প্রতিটি লাইন শুধু মিথ্যাই নয়, একজন চিকিৎসকের পেশাদারি এথিক্সের পরিপন্থী। পরিচালক নিজে একজন ডাক্তার হয়ে এরকম কুৎসিত মিথ্যাচার করতে পারেন যেটি এই মহান পেশাকে কলঙ্কিত করে। দেশের চারবারের একজন সাবেক প্রধানমন্ত্রী অসুস্থতা নিয়ে পরিচালকের বিবৃতি গণভবনে তৈরি, আমি এই জীবন্ত কল্পকাহিনীর বিবৃতি ঘৃণাভরে প্রত্যাখান করছি।’ রিজভী বলেন,‘ হাসপাতালের একজন ঊর্ধ্বতন কর্মকর্তা যিনি চিকিৎসক, এ ধরনের বিবৃতি দিতে পারেন! তাহলে কি বেগম খালেদা জিয়ার বোন মিথ্যা কথা বলছেন? তিনি তো মিথ্যা বলার লোক নন। তিনি তার বোনকে দেখে শারীরিক অবস্থা নিয়ে মিথ্যা কথা বলছেন? বিএনপির সিনিয়র যুগ্ম মহাসচিব বলেন, ‘বেগম জিয়ার অসুস্থতা নিয়ে সরকারি চাপের মুখে গণমাধ্যমে সব সংবাদ প্রকাশিত না হলেও বিশ্বব্যাপী গণমাধ্যমে আসল ঘটনা প্রকাশিত হচ্ছে। সম্প্রতি সুইডেনের সংবাদ মাধ্যম নেত্র নিউজে প্রকাশিত অনুসন্ধানী প্রতিবেদনে বলা হয়েছে, কারাবন্দি বিএনপি নেত্রী ও সাবেক প্রধানমন্ত্রী খালেদা জিয়া “পঙ্গু অবস্থায়” আছেন এবং দৈনন্দিন কাজের জন্য তিনি অপরের সাহায্যের উপর নির্ভরশীল হয়ে পড়েছেন। বাংলাদেশ সুপ্রিম কোর্টের আপিল বিভাগকে খালেদা জিয়ার স্বাস্থ্য সম্পর্কে এই তথ্য দিয়েছে তার চিকিৎসার জন্য গঠিত বিএসএমএমইউ হাসপাতালের একটি মেডিক্যাল বোর্ড। সুপ্রিম কোর্টের রেজিস্ট্রার জেনারেলের কাছে বিএসএমএমইউর ভাইস চ্যান্সেলরের স্বাক্ষরিত একটি চিঠির সাথে মেডিক্যাল বোর্ডের রিপোর্টটি পাঠানো হয় ২০১৯ সালের ১১ ডিসেম্বর। পরদিন, অর্থাৎ ১২ই ডিসেম্বর, আপিল বিভাগ খালেদা জিয়ার এই ভয়াবহ পঙ্গু অবস্থার প্রতিবেদন পাওয়া সত্ত্বেও জামিনের আবেদন বাতিল করে দেয় সরকারের সর্বোচ্চ মহলের হস্তক্ষেপে। নেত্র নিউজ খালেদা জিয়ার স্বাস্থ্য নিয়ে মেডিক্যাল বোর্ডের রিপোর্টটির একটি রিডাক্টেড কপিও (স্পর্শকাতর অংশ ঢেকে দেওয়া হয়েছে এমন) প্রকাশ করে। আমরা সরকারকে বলবো- আজই বেগম জিয়াকে মুক্তি দিয়ে উন্নত হাসপাতালে তার চিকিৎসার সুযোগ প্রদান করা হোক। তাকে বেঁচে থাকার সুযোগ দিন।’ রোববার দুপুরে গোপীবাগ এলাকায় ধানের শীষের প্রচারণায় হামলার নিন্দা জানিয়ে রিজভী বলেন, ‘আওয়ামী লীগের কাউন্সিলর প্রার্থীর অফিস থেকে সরকারদলীয় সশস্ত্র সন্ত্রাসীরা অতর্কিতে হামলা ও গুলি চালালে ইশরাক হোসেনসহ ২০/২৫ জন নেতাকর্মী এবং সাংবাদিকরা গুরুতর আহত হয়। গুরুতর আহতদের রাজধানীর বিভিন্ন হাসপাতালে চিকিৎসা দেয়া হচ্ছে। গণমাধ্যমে এই খবর ফলাও করে প্রচার হচ্ছে। অথচ পুলিশ উল্টো ১৫০ জন বিএনপি নেতাকর্মীদের বিরুদ্ধে মিথ্যা মামলা দায়ের করেছে। মেয়র প্রার্থী ইশরাক ও নেতাকর্মীদের ওপর এই হামলা ভোটের দিন ভোট ডাকাতির পূর্ব-মহড়া। জনগণের মধ্যে আতঙ্ক সৃষ্টি করতে এই হামলা। দেশে যে আইনের শাসনের বদলে পুলিশি শাসন চলছে তা পরশুর হামলা ও মামলায় তা আবারও প্রমাণিত হলো।’

করোনাভাইরাস: নিরাপদ থাকতে যা করতে হবে

ঢাকা অফিস ॥ চীনের উহান থেকে ছড়িয়ে পড়া নভেল করোনাভাইরাস ইতোমধ্যে কেড়ে নিয়েছে ৮১ জনের প্রাণ, সংক্রমিত হয়েছে তিন হাজারের বেশি মানুষের দেহে। ২০০২ সালে সার্স এবং ২০১২ সালের মার্সের মতই এ নভেল করোনাভাইরাস একই পরিবারের সদস্য, যারা ছড়াতে পারে মানুষ থেকে মানুষে। মধ্য চীনের উহান শহরে ২০১৯ সালের ৩১ ডিসেম্বর করোনাভাইরাসের প্রথম সংক্রমণ শনাক্ত করা হয়। নিউমোনিয়ার মত লক্ষণ নিয়ে নতুন এ রোগ ছড়াতে দেখে চীনা কর্তৃপক্ষ বিশ্ব স্বাস্থ্য সংস্থাকে সতর্ক করে। এরপর ১১ জানুয়ারি প্রথম একজনের মৃত্যু হয়। ঠিক কীভাবে করোনাভাইরাস সংক্রমণ শুরু হয়েছিল- সে বিষয়ে এখনও নিশ্চিত নন বিশেষজ্ঞরা। তবে তাদের ধারণা, মানুষের দেহে এ রোগ এসেছে কোনো প্রাণী থেকে। তারপর মানুষ থেকে মানুষে ছড়িয়েছে। এর লক্ষণ শুরু হয় জ্বর দিয়ে, সঙ্গে থাকতে পারে সর্দি, শুকনো কাশি, মাথাব্যথা, গলাব্যথা ও শরীর ব্যথা। সপ্তাহখানেকের মধ্যে দেখা দিতে পারে শ্বাসকষ্ট। সাধারণ ফ্লুর মতই হাঁচি-কাশির মাধ্যমে ছড়াতে পারে এ রোগের ভাইরাস। করোনাভাইরাস মূলত শ্বাসতন্ত্রে সংক্রমণ ঘটায়। লক্ষণগুলো হয় অনেকটা নিউমোনিয়ার মত। কারও ক্ষেত্রে ডায়রিয়াও দেখা দিতে পারে। রোগ প্রতিরোধ ক্ষমতা ভালো হলে এ রোগ কিছুদিন পর এমনিতেই সেরে যেতে পারে। তবে ডায়াবেটিস, কিডনি, হৃদযন্ত্র বা ফুসফুসের পুরোনো রোগীদের ক্ষেত্রে মারাত্মক জটিলতা দেখা দিতে পারে। এটি মোড় নিতে পারে নিউমোনিয়া, রেসপাইরেটরি ফেইলিউর বা কিডনি অকার্যকারিতার দিকে। পরিণতিতে ঘটতে পারে মৃত্যু। মানুষের দেহে ভাইরাস সংক্রমণের পর লক্ষণ দেখা দিতে পারে এক থেকে ১৪ দিনের মধ্যে। কিন্তু লক্ষণ স্পষ্ট হওয়ার আগেই এ ভাইরাস ছড়াতে পারে মানুষ থেকে মানুষে। আর এ কারণেই চীনে এ রোগের সংক্রমণ নিয়ন্ত্রণ করা কঠিন হয়ে পড়েছে। চীনের বাইরে এ পর্যন্ত ১২টি দেশে নোভেল করোনাভাইরাস ছড়ানোর তথ্য পাওয়া গেছে। তবে বাংলাদেশে এখনও এ রোগে আক্রান্ত কাউকে পাওয়া যায়নি। নোভেল করোনাভাইরাসের কোনো টিকা বা ভ্যাকসিন এখনো তৈরি হয়নি। ফলে এমন কোনো চিকিৎসা এখনও মানুষের জানা নেই, যা এ রোগ ঠেকাতে পারে। ভাইরাসটির হাত থেকে রক্ষা পাওয়ার একমাত্র উপায় হল, যারা ইতোমধ্যেই আক্রান্ত হয়েছেন বা এ ভাইরাস বহন করছেন- তাদের সংস্পর্শ এড়িয়ে চলা। দেশে যদি এ ভাইরাস ছড়িয়েই পড়ে, তাহলে কীভাবে নিরাপদ থাকার চেষ্টা করা যায় সে বিষয়ে কিছু পরামর্শ দিচ্ছেন বিশেষজ্ঞরা। ১. ঘরের বাইরে যখন যাবেন গ্লাভস বা হাতমোজা পড়ুন। বাসে বা যে কোনো গণপরিবহনেও হাত ঢেকে রাখুন গ্লাভসে। যদি কখনও সামাজিক প্রয়োজনে হাত মেলাতে বা খাওয়ার জন্য গ্লাভস বা হাতেেমাজা খুলতেও হয়, ওই হাতে মুখ চোখ নাক স্পর্শ করা যাবে না। আবার গ্লাভস পরার আগে অবশ্যই গরম পানি আর সাবান দিয়ে ভালোভাবে ধুয়ে নিতে হবে হাত।  ২. যে গ্লাভস বা হাতমোজা পড়ে একবার বাইরে ঘুরে এসেছেন, খুব ভালোভাবে পরিষ্কার না করে তার দ্বিতীয়বার ব্যবহার করবেন না। ভেজা বা স্যাঁতস্যাঁতে গ্লাভস বা হাতমোজা ব্যবহার করবেন না। ৩. ধুলো আর ধোঁয়া থেকে বাঁচতে অনেকেই মাস্ক ব্যবহার করেন। তবে ঘরের ভেতরে বা বাইরে এ ধরনের মাস্ক করোনাভাইরাস থেকে খুব বেশি সুরক্ষা হয়ত দেবে না। কাপড় বা কাগজের তৈরি এসব মাস্ক কয়েকবার ব্যবহার করলেই নষ্ট হয়ে যায়। একই মাস্ক দিনের পর দিন ব্যবহার করলে তা বিপদের কারণ হতে পারে। তারচেয়ে বরং মাস্ক না পরাও ভালো। ৪. কাশি বা হাঁচির সময় মুখ ও নাক ঢেকে রাখতে হবে। টিস্যু ব্যবহার করতে হবে, যা অবশ্যই একবার ব্যবহারের পর ডাস্টবিনে ফেলে দিতে হবে। ৫. কেউ যদি কাশতে থাকেন বা নাক টানতে থাকেন, কারও মধ্যে যদি সংক্রমণের লক্ষণ দেখা দেয়, তাহলে তার অবশ্যই মাস্ক ব্যবহার করা উচিৎ, অন্তত অন্যদের নিরাপত্তার স্বার্থে। ৬. করোনাভাইরাস যদি ছড়িয়েই পড়ে, নিরাপদ থাকার একটি চেষ্টা হতে পারে ভিড় এড়িয়ে চলা এবং অন্যদের থেকে কিছুটা দূত্ব বজায় রেখে কথা বলা, সেটা হতে পারে দেড় ফুট দূরত্ব। হাত মেলানো বা কোলাকুলি থেকে সাবধান, সেটা সবার ভালোর জন্যই। ৭. বাসায় টয়লেট আর কিচেন থেকে পুরনো সব তোয়ালে সরিয়ে দিতে হবে প্রত্যেকের জন্য আলাদা তোয়ালে। সবাই তার জন্য নির্দিষ্ট তোয়ালেই ব্যবহার করবে, অন্যদেরটা কথনও স্পর্শ করবে না। সব তোয়ালে নিয়মিত ভালোভাবে পরিষ্কার করতে হবে। ভেজা বা ড্যাম্প তোয়ালে হতে পারে ভাইরাসের বাসা, সুতরাং সাবধান। ৮. বাসার যে জায়গাগুলোতে সবচেয়ে বেশি মানুষের হাত পড়ে, তার মধ্যে একটি হর দরজার নব। করোনাভাইরাসের ঝুঁকি যখন আশপাশে, তখন ডোরনব ব্যবহারেও সাবধান। সম্ভব হলে গ¬াভস পরে দরজা খোলা বা বন্ধ করার কাজটি করতে হবে। তা না হলে অন্তত ভালো ভাবে ধুয়ে ফেলতে হবে হাত। একই ধরনের সতর্কতা দেখাতে হবে সিঁড়ির রেলিং, ড্রয়ার, কম্পিউটার কি-বোর্ড আর মাউস, ল্যাপটপ, কলম, বাচ্চাদের খেলনা- এরকম যে কোনো কিছুর ক্ষেত্রে যা মানুষ হাত দিয়েই ব্যবহার করে। ৯. আপনি যদি সব সময় নিজের জিনিসপত্রই ব্যবহার করেন, সেগুলো যদি আর কেউ কখনও স্পর্শ না করে, তাহলে মোটামুটি নিশ্চিন্ত থাকতে পারেন। তবে যদি কখনও অন্যের ব্যবহৃত সামগ্রী আপনাকে ধরতে হয় কিংবা আপনার কিছু অন্যকে ব্যবহার করতে দিতে হয়, অবশ্যই ওই হাত ধোয়ার আগে নাখ, মুখ বা চোখ ছোঁবেন না। ১০. মাংস, ডিম বা শাকসব্জি ভালোভাবে ধুয়ে এমনভাবে রান্না করতে হবে যাতে কোনোভাবে কাঁচা না থাকে। সেই সঙ্গে প্রচুর তরল পানের পরামর্শ দিয়েছেন গবেষকরা। তথ্যসূত্র: ফরেইন পলিসি ম্যাগাজিন, স্বাস্থ্য অধিদপ্তর, ডবি¬উএইচও