পুরান ঢাকার জলাবদ্ধতা নিরসনে ব্যবস্থা নেয়া হবে – তাপস

ঢাকা অফিস \ ঢাকা দক্ষিণ সিটি করপোরেশন (ডিএসসিসি) নির্বাচনে আওয়ামী লীগ মনোনীত মেয়র প্রার্থী ব্যারিস্টার শেখ ফজলে নূর তাপস বলেছেন, পুরান ঢাকার জলাবদ্ধতা নিরসনে ব্যবস্থা নেয়া হবে, এজন্য দখল হওয়া খালগুলো পুনরুদ্ধার করা হবে। শুক্রবার রাজধানীর গেন্ডারিয়া থানার নারিন্দা এলাকার গড়িয়ার মঠ সংলগ্ন মোড়ে নির্বাচনী প্রচারণার সময় তিনি এ কথা বলেন। তাপস বলেন, পুরান ঢাকায় অনেক খাল রয়েছে, যেগুলো দখলে রয়েছে। এই খালগুলো পানি উন্নয়ন বোর্ড দখলমুক্ত করতে পারেনি। আমরা সুন্দর ঢাকার আওতায় নিজস্ব উদ্যোগে এই খালগুলো উদ্ধার করে নান্দনিক বিনোদন কেন্দ্র স্থাপন করবো। ঢাকার ঐতিহ্যবাহী স্থাপনা সংরক্ষণ প্রসঙ্গে তিনি বলেন, পুরান ঢাকার ঐতিহ্যকে নিজস্ব স্বকীয়তা বজায় রেখে অন্যান্য সংস্থার সঙ্গে সমন্বয় করে সংরক্ষণ করা হবে। সিটি করপোরেশন থেকে ঐতিহ্যবাহী স্থাপনাগুলো রক্ষণাবেক্ষণে নিয়োজিত থাকবো। ঐতিহ্যের ঢাকাকে পুনর্জীবিত করবো। যেন বিশ্ববাসী পর্যটক হিসেবে এইসব ঐতিহাসিক স্থানে এসে উপভোগ করতে পারেন।

বান্দরবানে পপিক্ষেত ধ্বংস করল র‌্যাব

ঢাকা অফিস \ বান্দরবানে অভিযান চালিয়ে চারটি পপিক্ষেত ধ্বংস করা হয়েছে বলে র‌্যাব জানিয়েছে। র‌্যাব ৭-এর অধিনায়ক মশিউর রহমান বলেন, শুক্রবার সকাল ৭টা থেকে বেলা ১২টা পর্যন্ত জেলার রুমা উপজেলার কেওক্রাডং এলাকায় এই অভিযান চালানো হয়। তবে এ সময় র‌্যাব কাউকে আটক করতে পারেনি। র‌্যাব কর্মকর্তা মশিউর বলেন, রুমা উপজেলা শহর থেকে প্রায় ২০ কিলোমটার দূরে কেওক্রাডংয়ের আশপাশে গভীর জঙ্গলে এসব পপির চাষ হচ্ছিল। প্রায় সাত একর জমির চারটি ক্ষেতের খোঁজ পান তারা। বিদেশে পাচারের জন্য অবৈধভাবে এর চাষ হয়। র‌্যাব কর্মকর্তা বলেন, চারটি ক্ষেত থেকে প্রায় ৬০ কেজি পপির রস উদ্ধার করেন তারা। পরে ক্ষেত ও রস ধ্বংস করা হয়েছে। ক্ষেতের মালিককে খোঁজা হচ্ছে। এ ঘটনায় মামলা করা হবে।

 

জেলা পরিষদ চেয়ারম্যানের বিরুদ্ধে আ’লীগ নেতার মামলা

ঢাকা অফিস \ ব্রাহ্মণবাড়িয়া জেলা আওয়ামী লীগের উপদেষ্টা পরিষদের সদস্য মুক্তিযোদ্ধা আমানুল হক সেন্টু ও জেলা পরিষদের চেয়ারম্যান মুক্তিযোদ্ধা শফিকুল আলমের বিরুদ্ধে ডিজিটাল নিরাপত্তা আইনে মামলা দায়ের করা হয়েছে। বৃহস্পতিবার রাতে সদর মডেল থানায় মামলাটি দায়ের করেন ব্রাহ্মণবাড়িয়া জেলা আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক মুক্তিযোদ্ধা আল মামুন সরকার। ভুয়া মুক্তিযোদ্ধা ও মহান বিজয় দিবস উপলক্ষে মুক্তিযোদ্ধাদের সংবর্ধনা অনুষ্ঠানস্থলে হামলার জন্য দায়ী করায় এ মামলাটি করা হয়। মামলা নথিভুক্ত হওয়ার পর রাতেই পুলিশের একটি দল জেলা শহরের ফুলবাড়িয়া এলাকায় মুক্তিযোদ্ধা আমানুল হক সেন্টুর বাসভবনে অভিযান চালায়। তবে মুক্তিযোদ্ধা আমানুল হক সেন্টু বাসায় না থাকায় ফিরে যায় পুলিশ। ব্রাহ্মণবাড়িয়া সদর মডেল থানা পুলিশের ওসি মুহাম্মদ সেলিম উদ্দিন জানান, মানহানিকর তথ্য দিয়ে প্রোপাগান্ডা সৃষ্টি করার অভিযোগ মামলাটি দায়ের করা হয়েছে। এর আগে গত ১৬ ডিসেম্বর মহান বিজয় দিবস উপলক্ষে জেলা পরিষদ আয়োজিত মুক্তিযোদ্ধাদের সংবর্ধনা প্রদান ও আলোচনা সভাস্থলে হামলার ঘটনায় আল মামুন সরকারকে দায়ী করে গণমাধ্যমে বক্তব্য দেন আমানুল হক সেন্টু ও শফিকুল আলম। এর পরদিনই ব্রাহ্মণবাড়িয়া প্রেসক্লাবে সংবাদ সম্মেলন করে আল মামুন সরকার ওই ঘটনায় তাকে জড়িয়ে বক্তব্য দেয়ার প্রতিবাদ জানান। এরপর ২৬ ডিসেম্বর আমানুল হক সেন্টু ও শফিকুলকে জেলা আওয়ামী লীগের সভাপতি র.আ.ম উবায়দুল মোকতাদির চৌধুরী এবং সাধারণ সম্পাদক আল মামুন সরকারের পক্ষে আইনি নোটিশ পাঠানো হয়। কোনো প্রকার সাক্ষ্য ছাড়া জনসম্মুখে রাজনৈতিকভাবে হেয় প্রতিপন্ন করার উদ্দেশ্যে তাদেরকে জড়িয়ে এ ধরনের বক্তব্য দেয়া হয়েছে বলে নোটিশে উল্লেখ করা হয়।

বাম হাত বেঁকে গেছে খালেদা জিয়ার, উন্নত চিকিসা প্রয়োজন – সেলিমা

ঢাকা অফিস \ বিএনপির চেয়ারপারসন ও সাবেক প্রধানমন্ত্রী বেগম খালেদা জিয়ার স্বাস্থ্যের অবস্থা খুবই খারাপ বলে জানিয়েছেন তার বোন সেলিমা ইসলাম। তিনি বলেন, খালেদা জিয়ার সুচিকিৎসার জন্য মুক্তি চেয়ে বিশেষ আবেদনের কথা ভাবছি আমরা। গতকাল শুক্রবার বিকেলে কারাবন্দি বিএনপি চেয়ারপারসন খালেদা জিয়ার সঙ্গে সাক্ষাৎ শেষে তার সেজো বোন সেলিমা ইসলাম সাংবাদিকদের এ কথা জানান। সেলিমা ইসলাম বলেন, তার অবস্থা তো খুবই খারাপ। সে শুধু বমি করছে। গায়ে জ্বর আছে। শরীরের ব্যথায় কাতরাচ্ছে। বাম হাতটা সম্পূর্ণ বেঁকে গেছে। তাকে উন্নত চিকিৎসার জন্য অন্য কোথাও নিতে হবে। এ হাসপাতালে তার চিকিৎসা সম্ভব না। হাসপাতালের চিকিৎসকরা তাকে কেমন দেখছেন সাংবাদিকদের এমন প্রশ্নের জবাবে সেলিমা ইসলাম বলেন, তারা যে চিকিৎসা দিচ্ছেন এতে কোন কাজ হচ্ছে না। খালেদা জিয়ার চিকিৎসার জন্য পরিবারের পক্ষ থেকে কোনো আবেদন করা হবে কিনা জানতে চাইলে তিনি বলেন, আমরা এখনো কোনো আবেদন করিনি। তার যে অবস্থা তাতে মুক্তি দিয়ে উন্নত চিকিৎসার বন্দোব¯Í করতে হবে। শরীর তো খুবই খারাপ। সে তো ব্যথায় কাতরাচ্ছে, তার ডায়াবেটিকস আজকেও ১৫-তে। এভাবে কতদিন চলবে? এ হাসপাতালে তো ১ বছরের কাছাকাছি সময় রয়েছে, তার শরীরে কোন উন্নতি হচ্ছে না বরং দিন দিন অবনতি হচ্ছে। এজন্য আমরা চাই তাকে উন্নত হাসপাতালে চিকিৎসা করাতে। খালেদা জিয়ার মুক্তির বিষয়ে সরকার আইনের কথা বলছেন এই ক্ষেত্রে পরিবারের পক্ষ থেকে বিশেষ কোনো আবেদন করবে কিনা জানতে চাইলে তিনি বলেন, আমরা ভাবছি, আমরা আবেদন করবো। তবে এটা এখনো ঠিক করিনি। কারণ তার শরীরে যে অবস্থা, এই অবস্থায় বেশি দিন থাকলে তাকে জীবিত বাসায় নিয়ে যেতে পারবো না। নির্বাচনের বিষয়ে কোনো বার্তা দিয়েছেন কিনা সাংবাদিকদের এমন প্রশ্নের জবাবে তিনি বলেন, সে তো কথাই বলতে পারছে না। তবে দেশবাসীর কাছে দোয়া প্রার্থনা করেছে। এর আগে বিকাল ৩টার দিকে বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিব মেডিকেল বিশ্ববিদ্যালয় (বিএসএমএমইউ) হাসপাতালে প্রবেশ করেন পরিবারের সদস্যরা। সঙ্গে নিয়ে যান বাসায় রান্না করা খাবার ও কিছু ফলমূল।পরিবারের বরাত দিয়ে বিএনপির চেয়ারপারসনের প্রেস উইং সদস্য শামসুদ্দিন দিদার জানান, পরিবারের সদস্যরা হলেন, বেগম খালেদা জিয়া বোন সেলিমা ইসলাম, ছোট ভাই শামীম ইস্কান্দার, তার স্ত্রী কানিজ ফাতেমা, ও ছেলে অভিক ইস্কান্দার, সাইদ ইস্কান্দারের স্ত্রী নাসরিন ইস্কান্দার। আরাফাত রহমান কোকোর শাশুড়ি ফাতেমা রেজা হাসপাতলে আসলেও সাক্ষাৎকারের তালিকায় তার নাম না থাকায় প্রবেশ করতে দেওয়া হয়নি।

হিমু পরিবহণ কুষ্টিয়া’র উদ্যোগে ফিরে দেখা-১৯ ও ক্রেস্ট প্রদান অনুষ্ঠান

আল-মাহাদী \ কুষ্টিয়া সার্কিট হাউজের সামনে গতকাল দুপুরে উদয় মা ও শিশু পূর্নবাসন কেন্দ্রে হিমু পরিবহণ কুষ্টিয়ার এর উদ্যোগে “ফিরে দেখা-২০১৯” ও ক্রেস্ট প্রদান অনুষ্ঠানের আয়োজন করা হয়। অনুষ্ঠানে উপস্থিত ছিলেন সাংবাদিক ড. আমানুর আমান, ব্যবসায়ী রোটারিয়ান রাসেল পারভেজ, সাংবাদিক এস.এম. আবু ওবাইদা-আল-মাহাদী, ব্যবসায়ী মোঃ আনিছুর রহমান রাজিব। এসময় ২০১৯ সালের কার্যক্রমে বিভিন্ন ক্যাটাগরির ভিত্তিতে ক্রেস্ট প্রদান করা হয়। সেরা পাঠক- সুমাইয়া আক্তার মিতু, সর্বোচ্চ উপস্থিতি সৌরভ কুমার দাস, সেরা হেল্পার ইসরাত জাহান সেতু, আবরার, সৌকত, ইসমাইল, সেরা টিম লিডার শায়েদ আহমেদ শুভ। ক্রেস্ট প্রদান শেষে বৃদ্ধা মায়েদের সাথে দুপুরের খাবার আহরণ করে হিমু পরিবহণ কুষ্টিয়া টিম।

ভোটচোরদের বিশ্বাস নেই, কেন্দ্র পাহারা দিন – আমীর খসরু

ঢাকা অফিস \ ঢাকার দুই সিটি নির্বাচনে জনগণকে ভোটকেন্দ্র পাহারা দেয়ার আহŸান জানিয়েছেন বিএনপির জাতীয় স্থায়ী কমিটির সদস্য আমীর খসরু মাহমুদ চৌধুরী। শুক্রবার সকালে রাজধানীর মধ্য বাড্ডায় লুৎফুন টাওয়ারের সামনে ঢাকা উত্তরে বিএনপির মেয়রপ্রার্থী তাবিথ আউয়ালের সমর্থনে একপথায় তিনি এই আহŸান জানান। জনগণকে ভোটকেন্দ্র পাহারা দেয়ার আহŸান জানিয়ে আমীর খসরু মাহমুদ চৌধুরী বলেন, আওয়ামী লীগের প্রার্থীরা আচরণ বিধি লঙ্ঘন করে চলেছে। নির্বাচন কমিশন নির্বিকার। তিনি বলেন, ভোটচোরদের বিশ্বাস নেই। ভোট চোরদের প্রতিহত করতে হবে। কেন্দ্র পাহারা দিতে হবে। এসময় ঐক্যফ্রন্টের নেতা ও জেএসডির সভাপতি আ স ম আব্দুর রব বলেন, এই নির্বাচন খালেদা জিয়ার মুক্তির নির্বাচন। গণতন্ত্র ফিরিয়ে আনার নির্বাচন। সরকার ধানের শীষের বিজয় ঠেকাতে পারবে না। তারা ভয় পেয়ে গেছে। পুলিশ ভাইরা জনগণের বিপক্ষে গিয়ে কাজ করবেন না। আপনারা জনগণের সেবক। তাই নিরপেক্ষ হয়ে কাজ করুন। পথসভায় আরও উপস্থিত ছিলেন বিএনপি চেয়ারপারসনের উপদেষ্টা শামসুজ্জামান দুদু, যুগ্ম মহাসচিব ব্যারিস্টার মাহবুব উদ্দিন খোকন, বাংলাদেশ লেবার পার্টির চেয়ারম্যান মো¯Íাফিজুর রহমান ইরান প্রমুখ।

বিএনপির দুই প্রার্থী আনিসুলের কবরে

ঢাকা অফিস \ গত নির্বাচনে আওয়ামী লীগের টিকেটে ঢাকা উত্তর সিটি করপোরেশনের মেয়র নির্বাচিত হওয়া আনিসুল হকের কবর জিয়ারত করলেন এবারের সিটি নির্বাচনে বিএনপির দুই প্রার্থী তাবিথ আউয়াল ও ইশরাক হোসেন। অবিভক্ত ঢাকার শেষ মেয়র সাদেক হোসেন খোকার ছেলে ইশরাক এবার দক্ষিণ সিটির মেয়র পদে ধানের শীষের প্রার্থী। আর বিএনপির ভাইস চেয়ারম্যান আবদুল আউয়াল মিন্টুর ছেলে তাবিথ নির্বাচন করছেন উত্তর সিটিতে। ২০১৫ সালের নির্বাচনে তিনি ছিলেন আনিসুল হকের প্রতিদ্ব›দ্বী। তাবিথ আর ইশরাক শুক্রবার সকালে বনানী কবরাস্থানে গিয়েছিলেন খালেদা জিয়ার ছোট ছেলে আরাফাত রহমান কোকোর কবরে শ্রদ্ধা নিবেদন করতে। পরে সেখানে আনিসুল হকের কবরও তারা জিয়ারত করেন। প্রয়াত মেয়রের কবরে ফুল দিয়ে শ্রদ্ধা নিবেদনের পর তার আত্মার মাগফেরাত কামনায় মোনাজাতেও অংশ নেন বিএনপির দুই প্রার্থী। বিএনপির ভাইস চেয়ারম্যান মোহাম্মদ শাহজাহান, প্রচার সম্পাদক শহীদউদ্দিন চৌধুরী, আবদুল আউয়াল খান, মোরতাজুল করীম বাদরু এ সময় সেখানে উপস্থিত ছিলেন। ঢাকা সিটি করপোরেশন দুই ভাগ হওয়ার পর ২০১৫ সালে প্রথম নির্বাচনে উত্তরের মেয়র পদে চমক দেখান ব্যবসা থেকে রাজনীতিতে আসা আনিসুল হক। ভোটের দিন দুপুরে কারচুপির অভিযোগ তুলে সেই নির্বাচন বর্জন করেন তাবিথ। মেয়র হওয়ার পর ২০১৭ সালের ৩০ নভেম্বর যুক্তরাজ্যে চিকিৎসাধীন অবস্থায় মারা যান আনিসুল হক। এরপর উপ-নির্বাচনে আওয়ামী লীগের প্রার্থী হিসেবে মেয়র নির্বাচিত হন আরেক ব্যবসায়ী মো. আতিকুল ইসলাম। বিএনপি ওই নির্বাচনে প্রার্থী দেয়নি। বনানী কবরাস্থানে তাবিথ তার নানা শাহজাহান ভুঁইয়া, নানী সালমা বেগম ভুঁইয়া, মামা ইশতিয়াক ফারুক ও মামী ফাহমিদা ফারুকের কবরও জিয়ারত করেন। কবর জিয়ারত শেষে বিএনপির দুই প্রার্থী যার যার নির্বাচনী এলাকায় ভোটের প্রচারে বেরিয়ে পড়েন।

মেয়র প্রার্থী আতিক এবার ক্রিকেটার

ঢাকা অফিস \ ভোটের প্রচারে চাওয়ালার ভূমিকায় অবতীর্ণ হয়ে কয়েকদিন আগে আলোচনায় আসা ঢাকা উত্তর সিটি করপোরেশনের মেয়র পদে আওয়ামী লীগের প্রার্থী আতিকুল ইসলামকে এবার দেখা গেল ক্রিকেটারের ভূমিকায়। গতকাল শুক্রবার সকালে গুলশান ইয়ুথ ক্লাব মাঠে আয়োজিত দ্বিতীয় বিভাগের একটি ক্রিকেট টুর্নামেন্টের উদ্বোধনী অনুষ্ঠানে যান উত্তরের সাবেক মেয়র আতিকুল। সেখানে তিনি খেলোয়াড়দের সঙ্গে পরিচিত হন। দুটি দল মাঠে নেমে খেলা শুরু করার কিছুক্ষণ পর গ্লাভস, প্যাড, হেলমেট পরে মাঠে নেমে যান আতিকুল ইসলাম। ব্যাট হাতে চলে যান স্ট্রাইকিং প্রান্তে। একজন স্পিনার আতিককে বল করতে এলে কয়েকটি বল খেলে তিনটি বাউন্ডারিতে পাঠান নৌকার প্রার্থী। পরে ওই বোলারের বলেই বোল্ড হয়ে ফিরে আসেন মাঠের বাইরে। খেলার প্রচার শেষে আতিকুল ইসলাম সাংবাদিকদের বলেন, যুব সমাজকে মাদকমুক্ত-সন্ত্রাসমুক্ত করতে গেলে খেলাধুলার বিকল্প নেই। এজন্য নির্বাচিত হলে ঢাকা উত্তরে খেলার মাঠ তৈরির দিকে তিনি মনোযোগ দেবেন। “আমাদের যুব সমাজ নানা কারণে ডিপ্রেশনে চলে যাচ্ছে। আমাদের সমাজে এমন কোনো ঘর নাই যেখানে কেউ না কেউ এ সমস্যায় আক্রান্ত নয়। আমরা হয়ত লোকলজ্জার ভয়ে সমাজের সামনে বিষয়টি আনি না। খেলাধুলা থাকলে যুব সমাজ এ ধরনের সমস্যা থেকে মুক্তি পাবে বলে আমি মনে করি।” আতিক বলেন, “আপনাদের ভোটে, জনগণের ভোটে ইনশাল্লাহ আগামী ফেব্র“য়ারিতে নৌকা মার্কায় জয়যুক্ত হলে আমি কথা দিতে পারি মাঠগুলোকে অবশ্যই ফিরিয়ে আনব। খুশি হবেন যে আমরা ২৪টি পার্ক এবং মাঠের কাজে হাত দিয়েছি, এসব মাঠের মধ্যে কয়েকটি হবে মাল্টিপারপাস। সেখানে ক্রিকেট ফুটবলসহ বিভিন্ন খেলাধুলা করা যাবে।” নির্বাচিত হলে কর্মজীবী মানুষের জন্য রাতে খেলার ব্যবস্থাও করবেন বলে প্রতিশ্রুতি দেন গার্মেন্ট ব্যবসা থেকে রাজনীতিতে আসা আতিকুল। “আমাদের অনেকে দিনের বেলা অফিসে চলে যায়। আমরা মাঠগুলোয় বাতির ব্যবস্থা করে দেব। যেন কাজ শেষে বাচ্চাদের নিয়ে মাঠে যেতে পারেন। নির্বাচিত হলে নারীদের জন্য ক্রিকেট, ফুটবল, ভলিবল টুর্নামেন্ট চালু করা হবে। আমাদের এতিহ্যবাহী অনেক খেলা হারিয়ে গেছে। সেগুলো ফিরিয়ে আনার উদ্যোগ নিতে হবে।” স্কুল-কলেজে নিয়মিত খেলাধুলা করতেন জানিয়ে আতিক বলেন, এখনও উত্তরায় নিয়মিত ফুটবল খেলেন বলেই শারীরিকভাবে অনেকটা ‘ফিট’। “অনেকে আমার কাছে জানতে চায় আমি ফিট আছি কীভাবে। তাদের বলি, আমি এখনও প্রতিদিন বাসায় যাওয়ার আগে ফুটবল খেলি। না হলে পরদিন সকালে মাঠে যাই।” বক্তব্য শেষে আতিকুল ইসলাম আশপাশের মানুষের কাছে প্রচারপত্র বিলি করেন এবং নৌকা মার্কায় ভোট চান। আওয়ামী লীগের স্থানীয় নেতাকর্মী এবং গুলশান ইয়ুথ ক্লাবের কর্মকর্তারা এ সময় সেখানে উপস্থিত ছিলেন।

কালুখালীতে নানা আয়োজনে ছাত্রলীগের প্রতিষ্ঠাবার্ষিকী উদযাপন

ফজলুল হক \ গতকাল শুক্রবার রাজবাড়ীর কালুখালীতে নানা আয়োজনে বাংলাদেশ ছাত্রলীগের ৭২তম প্রতিষ্ঠাবার্ষিকী উদযাপন করা হয়েছে। এ উপলক্ষ্যে বিকাল ৩টায় কালুখালী উপজেলা আওয়ামীলীগের দলীয় কার্যালয়ের সামনে থেকে উপজেলা বিভিন্ন ইউনিয়নের ছাত্রলীগের নেতাকর্মীদের নিয়ে বিশাল একটি বর্ণাঢ্য র‌্যালী বের করা হয়। র‌্যালীটি রতনদিয়া বাজারের আশপাশ রা¯Íা প্রদক্ষিণ করে একই স্থানে এসে শেষ হয়। পরে উপজেলা আওয়ামীলীগের দলীয় কার্যালয়ে জাতীয় ও দলীয় পতাকা উত্তোলন শেষে আলোচনা সভা অনুষ্ঠিত হয়। কালুখালী উপজেলা ছাত্রলীগের সভাপতি মোঃ জাহিদুল ইসলাম সুমনের সভাপতিত্বে অতিথি হিসেবে কালুখালী উপজেলা আওয়ামীলীগের সভাপতি ও কালিকাপুর ইউপি চেয়ারম্যান আতিউর রহমান নবাব, সাধারণ সম্পাদক ও জেলা পরিষদ সদস্য খায়রুল ইসলাম খায়ের, সাবেক উপজেলা মুক্তিযোদ্ধা কমান্ডার সার্জেন্ট (অব) আকামত আলী মন্ডল, সাওরাইল ইউপি চেয়ারম্যান শহিদুল ইসলাম আলী,  উপজেলা আওয়ামী যুবলীগের আহবায়ক মনিরুজ্জামান চৌধুরী মবি, যুগ্ম আহবায়ক রাকিবুল ইসলাম লাবু, সোহেল আলী মোল্লা প্রমূখ বক্তব্য রাখেন। অনুষ্ঠানে উপজেলা ছাত্রলীগের সাধারণ সম্পাদক আসাদুজ্জামান নূর রুকু, ছাত্রলীগ নেতা শেখ মোঃ রিপন, হেদায়েতুল ইসলাম সোহাগ, এমদাদ হোসেন, কামাল হোসেন, মিজানুর রহমানসহ অন্যান্য নেতাকর্মীবৃন্দ উপস্থিত ছিলেন।

সুলতানপুর মাহ্তাবিয়া মাধ্যমিক বিদ্যালয়ে বার্ষিক ক্রীড়া ও পুরস্কার বিতরণী

কুষ্টিয়ার কুমারখালী কয়া সুলতানপুর মাহ্তাবিয়া মাধ্যমিক বিদ্যালয়ে বার্ষিক ক্রীড়া প্রতিযোগীতা অনুষ্ঠিত হয়েছে। গতকাল শুক্রবার ক্রীড়া প্রতিযোগিতা ও পুরস্কার বিতরণী অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথি ছিলেন কয়া ইউনিয়নের চেয়ারম্যান, কুষ্টিয়া জেলা যুবলীগের সাধারণ সম্পাদক জিয়াউল ইসলাম স্বপন। সমাপনী বার্ষিকী ক্রীড়া প্রতিযোগীতা অনুষ্ঠানে সভাপতিত্ব করনে আলহাজ¦ মো জুলফিকার হোসেন জুলু। উপস্থিত ছিলেন বিদ্যালয়ের প্রধান শিক্ষক মোঃ আব্দুর রশিদ বিশ^াসসহ বিভিন্ন পর্যায়ের উচ্চপদস্থ কর্মর্কতাবৃন্দ, শিক্ষক, অভিভাবক, র্কমর্কতা ও কর্মচারীবৃন্দসহ বিদ্যালয়ের ছাত্র-ছাত্রী উপস্থিত ছিলেন। ক্রীড়া প্রতিযোগিতার সমাপনী দিনে বিদ্যালয়ের মাঠ হয়ে ওঠে নান্দনিক  সৌন্দর্যে অতুলনীয়। ছাত্র ছাত্রীদের পরিবেশিত মনোমুগ্ধকর  গান বাজনা খেলাধুলাসহ যেমন খুশি তেমন সাজো  সকলকে মনমুগ্ধ করে। প্রধান অতিথির ভাষণে ছাত্র ছাত্রীদেরকে জ্ঞান অর্জনের পাশাপাশি ক্রীড়া ও অন্যান্য সহশিক্ষামূলক কার্যক্রম অংশগ্রহণ করে ভবিষ্যতে আদর্শ নাগরিক হিসেবে নিজেদেরেকে গড়ে তোলার পরার্মশ দেন। সংবাদ বিজ্ঞপ্তি

করোনাভাইরাস

চীনে একের পর এক শহরে বন্ধ হচ্ছে গণপরিবহন

ঢাকা অফিস \ চীনে নতুন ধরনের করোনাভাইরাস ছড়িয়ে পড়া রোধ করতে হুবেই প্রদেশ জুড়ে একের পর এক শহরে গণপরিবহন বন্ধ করে দেওয়া হচ্ছে। বৃহস্পতিবার প্রথমে হুবেই প্রদেশের উহান শহরে গণপরিবহন বন্ধ হওয়ার পর অন্তত আরো চারটি শহরে গণপরিবহন বন্ধ হচ্ছে। এ শহরগুলো হচ্ছে, হুয়াংগ্যাং, এঝু, সিয়ানতাও এবং চিবি।এতগুলো শহরে একসঙ্গে গনপরিবহন বন্ধের এ ঘটনা ‘নজিরবিহীন’। উহান শহরের বাসিন্দা এক কোটি ১০ লাখ। তাদেরকে শহর না ছাড়ার পরামর্শ দেওয়ার পাশাপাশি বৃহস্পতিবার স্থানীয় সময় সকাল ১০টা থেকে সব বহির্গামী ট্রেন সার্ভিস ও উড়োজাহাজের ফ্লাইট সাময়িকভাবে বন্ধ রাখা এবং দুপুর ১টা থেকে বাস, সাবওয়ে ও ফেরি সার্ভিসও বন্ধ রাখার ঘোষণা দেয় স্থানীয় সরকার। এর কয়েকঘণ্টা পর একই ব্যবস্থা নেয় দ্বিতীয় আরেকটি শহর হুয়াংগ্যাংয়ও। এ শহরের বাসিন্দা প্রায় ৭০ লাখ। উহানের পূর্বের এ শহরটিতে কর্তৃপক্ষ বৃহস্পতিবার মধ্যরাত থেকে বাস ও ট্রেন চলাচল বন্ধ রাখার ঘোষণা দেওয়া ছাড়াও লোকজনকে শহরের বাইরে না যাওয়ার পরামর্শ দিয়েছে। অন্যান্য শহরগুলোতেও মানুষের চলাফেরা এবং একে অপরের সংস্পর্শে আসতে না দেওয়ার ব্যাপারে কড়াকড়ি আরোপ করা হচ্ছে। হুয়াংগ্যাংয়ের দক্ষিণের এঝু শহরে ট্রেন স্টেশনগুলো বন্ধ করে দেওয়া হয়েছে। সিয়ানতাও শহরে গণপরিবহন বন্ধ করাসহ লোক সমাগম নিষিদ্ধ করা হয়েছে এবং বিভিন্ন স্থানে স্থাপনা গেড়ে ভাইরাস সংক্রমণ সনাক্তের উদ্যোগ নেওয়া হয়েছে।চিবি শহরেও বন্ধ করে দেওয়া হচ্ছে পরিবহন।রাজধানী বেইজিংয়ে বাতিল করা হয়েছে নববর্ষ উপলক্ষে আয়োজিত বড় বড় সব অনুষ্ঠান। বিশ্বব্যাপী বিমানবন্দরগুলোতে চীন থেকে যাওয়া যাত্রীদের কড়া পরীক্ষা-নিরীক্ষার মধ্য দিয়ে যেতে হচ্ছে। নতুন ভাইরাসটির কোনো টিকা নেই।শ্বাসযন্ত্রে অসুখ সৃষ্টিকারী এ ভাইরাসের প্রাদুর্ভাবে চীনে এ পর্যন্ত ১৭ জনের মৃত্যু হয়েছে ও প্রায় ৬০০ লোক আক্রান্ত হয়েছে। উহানে একটি হাসপাতালের ডাক্তার বিবিসি-কে বলেছেন, “ভাইরাসটি উদ্বেগজনক হারে ছড়িয়ে পড়ছে। হাসপাতাল ভরে যাচ্ছে হাজার হাজার রোগীতে। তারা লাইন ধরে ডাক্তার দেখানোর অপেক্ষায় আছে। এতেই বোঝা যায় তারা কতটা আতঙ্কে আছে।” ‘হাঁচি, কাশির মাধ্যমে’ ছড়িয়ে পড়ার সম্ভাবনা থাকা এ রোগটি চীনের বিভিন্ন স্থানে ছড়িয়ে পড়ার পাশাপাশি সূদুর যুক্তরাষ্ট্রসহ অন্যান্য কয়েকটি দেশেও ছড়িয়েছে। বৃহস্পতিবার সিঙ্গাপুরেও প্রথম এ ভাইরাসের প্রাদুর্ভাব দেখা গেছে। সেখানে চীন থেকে যাওয়া ৬৬ বছর বয়সী এক ব্যক্তির দেহে ভাইরাস সংক্রমণ ধরা পড়েছে। ভাইরাসটির বিশ্বব্যাপী ছড়িয়ে পড়া রোধ করতে বিশ্বজুড়ে বিভিন্ন দেশের স্বাস্থ্য কর্তৃপক্ষ নানা উদ্যোগ গ্রহণ করেছে। বিশ্ব স্বাস্থ্য সংস্থা (ডক্লিউএইচও) বুধবার তাদের জেনেভার সদরদপ্তরে এক বৈঠকের পর জানিয়েছে, নতুন এ করোনাভাইরাসটির প্রাদুর্ভাবকে বিশ্বজুড়ে স্বাস্থ্য বিষয়ক জরুরি অবস্থা ঘোষণা করা হবে কি না, বৃহস্পতিবার সে সিদ্ধান্ত নেবে তারা। ধারণা করা হয়, চীনের মধ্যাঞ্চলীয় শহর উহানের একটি পশু বাজারে অবৈধভাবে চলা বন্যপ্রাণী ব্যবসা থেকে গত বছরের শেষ দিকে প্রাণঘাতী এ করোনাভাইরাসটির সংক্রমণ ছড়িয়ে পড়ে। বিভিন্ন দেশে বেশ কয়েকজন আক্রান্ত শনাক্ত হওয়ার পর ভাইরাসটি বিশ্বব্যাপী ছড়িয়ে পড়ছে বলে শঙ্কা তৈরি হয়েছে। এ পর্যন্ত মৃত্যুর সব ঘটনা উহান যে প্রদেশে অবস্থিত সেই হুবেইতেই ঘটেছে। ২০০২-০৩ সালে চীনে সার্স ভাইরাসের প্রাদুর্ভাবে প্রায় ৮০০ লোকের মৃত্যু হয়েছিল। ওই সময় প্রাদুর্ভাবের বিভিন্ন তথ্য গোপন করেছিল চীনের কমিউনিস্ট সরকার। কিন্তু এবার জনগণের উদ্বেগ নিয়ন্ত্রণে রাখতে আক্রন্তের সংখ্যার প্রতিদিনের হালনাগাদ দিচ্ছে তারা।

 

কুষ্টিয়ার কৃতিসন্তান দীপু মাহমুদ পেলেন অধ্যাপক খালেদ শিশুসাহিত্য পুরস্কার

বিশেষ প্রতিনিধি \  কিশোর উপন্যাস “শ্যামসুন্দর”-এর জন্য অধ্যাপক  মোহাম্মদ খালেদ শিশুসাহিত্য পুরস্কার ২০১৯-এ ভূষিত হয়েছেন দীপু মাহমুদ। সাংবাদিক, মুক্তিযুদ্ধের সংগঠক ও স্বাধীন বাংলাদেশের সংবিধানের অন্যতম প্রণেতা অধ্যাপক মোহাম্মদ খালেদ-এর নামে প্রবর্তিত হয়েছে ‘অধ্যাপক মোহাম্মদ খালেদ শিশুসাহিত্য পুরস্কার’। এই পুরস্কার চালু করেছে সাহিত্য, সংস্কৃতি, ইতিহাস ঐতিহ্য বিষয়ক প্রতিষ্ঠান ‘চট্টগ্রাম একাডেমি’। পুরস্কার হিসেবে দেওয়া হবে একটি ক্রেস্ট, সনদ ও নগদ সম্মানী। শিশুসাহিত্যে অবদান রাখার স্বীকৃতিস্বরূপ ইতোপূর্বে দীপু মাহমুদ অগ্রণী ব্যাংক-শিশু একাডেমি শিশুসাহিত্য পুরস্কার, এম নুরুল কাদের শিশুসাহিত্য পুরস্কার, শিশুসাহিত্যিক মোহাম্মদ নাসির আলী স্বর্ণপদক, আনন্দ আলো শিশুসাহিত্য পুরস্কার, সায়েন্স ফিকশন সাহিত্য পুরস্কারসহ নানা পুরস্কারে ভূষিত হয়েছেন। পেয়েছেন সম্মাননা। তাঁর প্রকাশিত বইয়ের সংখ্যা নব্বই ছাড়িয়েছে।

দীপু মাহমুদের লেখা শ্যামসুন্দর, বুসেফেলাস, নিতুর ডায়েরি ১৯৭১, সমুদ্রে ভয়ংকর, মাহিনের জুতোজামা, রাজকুমার ও যুবরাজ, পুতলি ও  ছেলেধরা, নয়ন, মিরুর স্বপ্নখাতা উল্লেখযোগ্য কিশোর উপন্যাস। এ ছাড়াও তিনি শিশু-কিশোরদের জন্য লিখেছেন শতাধিক ছোটগল্প, মুক্তিযুদ্ধের ইতিহাস ও অসংখ্য বৈজ্ঞানিক কল্পকাহিনি।

দীপু মাহমুদের জন্ম নানাবাড়ি চুয়াডাঙ্গা জেলার আলমডাঙ্গার প্রাগপুর গ্রামে। শৈশব ও বাল্যকাল কেটেছে দাদাবাড়ি চুয়াডাঙ্গার হাটবোয়ালিয়াতে। বেড়ে উঠেছেন কুষ্টিয়া শহরে। পড়াশোনা করেছেন কুষ্টিয়া জিলা স্কুল, কুষ্টিয়া সরকারি কলেজ, রাজশাহী বিশ্ববিদ্যালয়, রবীন্দ্রভারতী বিশ্ববিদ্যালয় ও আহছানউল্লা বিজ্ঞান ও প্রযুক্তি বিশ্ববিদ্যালয়ে। পিএইচডি করেছেন যুক্তরাষ্ট্রের আমেরিকান ওয়ার্ল্ড ইউনিভার্সিটিতে।

চীনে ভাইরাসে ২৫ জনের মৃত্যু, আক্রান্ত ৮৩০

ঢাকা অফিস \ চীনে ছড়িয়ে পড়া ভাইরাসে মৃতের সংখ্যা বেড়ে ২৫ জনে দাঁড়িয়েছে এবং আরো ৮৩০ জনের আক্রান্ত হওয়ার খবর নিশ্চিত করা হয়েছে। শুক্রবার সরকার একথা জানায়। খবর এএফপি’র। জাতীয় স্বাস্থ্য কমিশন জানায়, কর্তৃপক্ষ এ ভাইরাসে আক্রান্ত হয়ে থাকতে পারে এমন এক হাজার ৭২ জনকে পরীক্ষা-নিরীক্ষা করে দেখছে। চীনের মধ্যাঞ্চলীয় উহান নগরীতে প্রথম এ ভাইরাস দেখা দেয়। এ ভাইরাস বিশ্বব্যাপী মানব স্বাস্থ্যের জন্য ঝুঁকি সৃষ্টি করতে বিশ্ব স্বাস্থ্য সংস্থা এমন ঘোষণা দেয়ার মাত্র কয়েক ঘণ্টা পর মৃত্যুর বর্ধিত এ সংখ্যা প্রকাশ করা হলো। এ ভাইরাস ছড়িয়ে পড়ার কারণে চীন উহান ও এর পার্শ্ববর্তী কয়েকটি নগরীর প্রায় ২ কোটি মানুষকে কার্যকরভাবে আলাদা করে রাখা হয়েছে এবং বেইজিং দেশব্যাপী এ ভাইরাস ছড়িয়ে পড়া রোধে বিভিন্ন পদক্ষেপ গ্রহণের কথা ঘোষণা করেছে। কেননা, নতুন চন্দ্র বর্ষের ছুটির জন্য এ সপ্তাহে কোটি কোটি লোক ইতোমধ্যে দেশব্যাপী ভ্রমণ শুরু করেছে। জাতীয় স্বাস্থ্য সংস্থা জানায়, বৃহস্পতিবার এ ভাইরাসে নতুন করে আটজনের মৃত্যু এবং দেশব্যাপী আরো ২৫৯ জনের নতুন করে আক্রান্ত হওয়ার খবর পাওয়ায় এ সংখ্যা সংশোধন করা হয়। তারা আরো জানায়,মোট আক্রান্ত ৮৩০ জনের মধ্যে ১৭৭ জনের অবস্থা আশংকাজনক। এছাড়া ৩৪ জন পুরোপুরি সুস্থ্য হয়ে ওঠায় তাদেরকে হাসপাতাল থেকে ছেড়ে দেয়া হয়েছে। উল্লেখ্য, শ্বাস-প্রশ্বাস সংক্রান্ত এ ভাইরাস উহানের সামুদ্রিক খাবার ও পশুর বাজার থেকে ছড়িয়ে পড়ে বলে জানা যায়।

ভোট থেকে বিএনপিকে সরাতে দেউলিয়া আ.লীগের হামলা – ফখরুল

ঢাকা অফিস \ রাজনীতিতে দেউলিয়া হয়ে ক্ষমতাসীন আওয়ামী লীগ ঢাকা সিটির নির্বাচনের মাঠ থেকে বিএনপিকে সরাতে দলীয় প্রার্থীদের উপর পরিকল্পিতভাবে হামলা চালাচ্ছে বলে অভিযোগ করেছেন বিএনপি মহাসচিব মির্জা ফখরুল ইসলাম আলমগীর। খালেদা জিয়ার ছোট ছেলে আরাফাত রহমান কোকোর ৫ম মৃত্যুবার্ষিকীতে গতকাল শুক্রবার সকালে বনানী কবরস্থানে গিয়ে জিয়ারত শেষে সাংবাদিকদের কাছে একথা বলেন তিনি। মির্জা ফখরুল বলেন, ঢাকার উত্তর ও দক্ষিণ সিটি করপোরেশনের নির্বাচনে বিএনপির দুই মেয়র প্রার্থীর পক্ষে গণজোয়ার সৃষ্টি হয়েছে। নির্বাচন থেকে সরে যেতে তাদের উপর চাপ সৃষ্টি করা হচ্ছে। “শারীরিক আক্রমণ পর্যন্ত করা হয়েছে তাবিথ আউয়ালের ওপরে, ইশরাকের মিছিলে আক্রমণ করা হয়েছে।”

ধানের শীষের প্রার্থীদের ভোট থেকে সরাতে ক্ষমতাসীন দল নানা অপচেষ্টায় লিপ্ত অভিযোগ করে তিনি বলেন, আওয়ামী লীগ এতোই দেউলিয়া হয়ে গেছে, যে বিএনপি প্রার্থীদের নির্বাচন থেকে সরাতে তাদেরকে এখন মামলা-মোকাদ্দমার আশ্রয় নেওয়ার চেষ্টা করতে হচ্ছে। “আপনারা রাজনৈতিকভাবে শূন্য হয়ে গেছেন, দেউলিয়া হয়ে গেছেন। যে কারণে একটার পর একটা বিভিন্ন রকমের সমস্যা তৈরি করে তাদের বিজয়কে আপনারা বন্ধ করতে চাচ্ছেন বা প্রতিরোধ করতে চাচ্ছেন।” ফখরুল বলেন, কোকো ‘রাজনৈতিক প্রতিহিংসার’ শিকার হয়ে গ্রেপ্তার হন। পরে তার বিরুদ্ধে মামলা দেওয়া হয় এবং তিনি চিকিৎসার জন্য দেশের বাইরে যান। সেখানে অত্যন্ত মানসিক যন্ত্রণার মধ্যে তিনি ‘ইন্তেকাল’ করেন। দলের মেয়র প্রার্থী তাবিথ আউয়াল ও ইশরাক হোসেন, নেতৃবৃন্দের মধ্যে সেলিমা রহমান, মোহাম্মদ শাহজাহান, জয়নুল আবদিন ফারুক, আবুল খায়ের ভুঁইয়া, শামসুর রহমান শিমুল বিশ্বাস, খায়রুল কবির খোকন, হাবিব উন নবী খান সোহেল, শহীদ উদ্দিন চৌধুরী এ্যানি, আমিনুল হক, জিএম সিরাজ, নাজিমউদ্দিন আলম, শামীমুর রহমান শামীম, রফিক শিকদার, সাইফুল ইসলাম নিরব, সুলতান সালাউদ্দিন টুকু, শফিউল বারী বাবু, আবদুল কাদের ভুঁইয়া জুয়েল, সুলতানা আহমেদ ও এসএম জাহাঙ্গীর সেখানে ছিলেন। এছাড়া ২০ দলীয় জোট নেতাদের মধ্যে লেবার পার্টির মো¯Íাফিজুর রহমান ইরান, ন্যাশনাল পিপলন পার্টির ফরিদুজ্জামান ফরহাদ, মো¯Íাফিজুর রহমান মো¯Íফা উপস্থিত ছিলেন।

সিমলাকে হারিয়ে বিমান ছিনতাইয়ের চেষ্টা করেন পলাশ

ঢাকা অফিস \ বিমান বাংলাদেশ এয়ারলাইন্সের উড়োজাহাজ ‘ময়ূরপঙ্খী’ ছিনতাইচেষ্টা মামলার চূড়ান্ত প্রতিবেদন তদন্ত শেষে আদালতে জমা দিয়েছে পুলিশ। তদন্তে মোট ৭৯ জনের সাক্ষ্য ও বিভিন্ন আলামত পরীক্ষার পর জানা গেছে, সাবেক স্ত্রী চিত্রনায়িকা শামসুন নাহার সিমলা ডিভোর্স দেয়ার পরই হতাশা থেকে বিমান ‘ছিনতাইয়ের’ নাটক করেন পলাশ। ঘটনার দিনই কমান্ডো অপারেশনে নিহত হওয়ায় পলাশকে মামলা থেকে অব্যাহত দিয়ে ফাইনাল রিপোর্ট জমা দেয়া হয়েছে আদালতে। তদন্ত কর্মকর্তা চট্টগ্রাম মেট্রোপলিটন পুলিশের (সিএমপি) কাউন্টার টেররিজম ইউনিটের পরিদর্শক রাজেশ বড়ুয়া বিষয়টি গণমাধ্যমকে নিশ্চিত করেছেন। তদন্তে আরও জানা গেছে, মূলত ভীতি সঞ্চারের মাধ্যমে দৃষ্টি আকর্ষণ করতেই ‘অস্ত্র ও বোমাকাÐ’ ঘটান পলাশ আহমেদ। ২০১৮ সালের ৩ মার্চ সিমলার সঙ্গে পলাশের বিয়ে হয়। পলাশ আগের বিয়ের খবর গোপন করায় ওই বছরের ৬ নভেম্বর সিমলা তাকে ডিভোর্স দেন। ডিভোর্সের পরেই ‘হতাশা’ থেকে বিমান ‘ছিনতাইয়ের’ চেষ্টা করেন পলাশ। মামলার তদন্ত কর্মকর্তা জানান, বিমান ছিনতাই মামলায় মোট ৭৯ জনের সাক্ষ্য নেয়া হয়েছে। সাক্ষীদের মধ্যে বিমানযাত্রী ২২ জন, বিমানের পাইলট ও কেবিন ক্রু সাতজন, নিহত পলাশের আত্মীয়স্বজন ও ভাইবন্ধু ১৯ জন, অভিযানে অংশ নেয়া আইনশৃঙ্খলা বাহিনীর সদস্য ও উপস্থিত ২৬ জন এবং অন্যান্য পাঁচজন।সাক্ষ্য নিয়েছেন মামলার তদন্তকারী কর্মকর্তা সিএমপির কাউন্টার টেররিজম ইউনিটের পরিদর্শক রাজেশ বড়ুয়া। থেকে বাংলাদেশ বিমান এয়ারলাইন্সের বিজি-১৪৭ উড্ডয়নের পর পলাশ আহমেদ বোমাসদৃশ ব¯Íু ও অস্ত্র দেখিয়ে বিমানটি ‘ছিনতাইয়ের’ চেষ্টা করেন।

বিমানটি শাহ আমানত আন্তর্জাতিক বিমানবন্দরে অবতরণ করে। বিমানের ‘ইমার্জেন্সি ডোর’ দিয়ে যাত্রী ও কেবিন ক্রুদের দ্রæত বের করে আনা হয়।ওই সময় পলাশ সিমলার সঙ্গে কথা বলার আগ্রহ প্রকাশ করেন বলে তখন কমান্ডো অভিযানে থাকা বিমানবাহিনীর এক কর্মকর্তা গণমাধ্যমকে জানিয়েছিলেন।পরে আট মিনিটের এক কমান্ডো অভিযানে পলাশ আহমেদ নিহত হন। ওই সময় বিমান থেকে একটি খেলনা পি¯Íল ও কিছু বিস্ম্ফোরকসদৃশ ব¯Íু আলামত হিসেবে উদ্ধার করা হয়েছিল।

আওয়ামী লীগের নবনির্বাচিত কমিটির জাতির পিতার সমাধিতে শ্রদ্ধা নিবেদন

ঢাকা অফিস \ প্রধানমন্ত্রী এবং আওয়ামী লীগ সভাপতি শেখ হাসিনার নেতৃত্বে আওয়ামী লীগের নবনির্বাচিত কেন্দ্রীয় কার্যনির্বাহী সংসদ এবং উপদেষ্টা পরিষদের সদস্যরা জাতির পিতা বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের স্মৃতির প্রতি শ্রদ্ধা নিবেদন করেছেন। গোপালগঞ্জের টুঙ্গিপাড়ায় গতকাল শুক্রবার অপরাহ্নে জাতির পিতার সমাধি সৌধে পুষ্পাঞ্জলী অর্পণের মাধ্যমে তাঁরা এই শ্রদ্ধা জানান। প্রধানমন্ত্রী এবং আওয়ামী লীগ সভাপতি শেখ হাসিনা প্রথমে জাতির পিতার সমাধিসৌধে পুষ্প¯Íবক অর্পণ করে শ্রদ্ধা নিবেদন করেন। সমাধি সৌধের বেদীতে পুষ্প¯Íবক অর্পণের পর প্রধানমন্ত্রী স্বাধীনতার এই মহান স্থপতির প্রতি সম্মান জানাতে সেখানে কিছু সময় নীরবে দাঁড়িয়ে থাকেন। পরে, শেখ হাসিনা আওয়ামী লীগের কেন্দ্রীয় কার্যনির্বাহী সংসদ এবং উপদেষ্টা পরিষদের সদস্যদের নিয়ে দলের পক্ষ থেকে সমাধি সৌধের বেদিতে আরেকটি পুষ্প¯Íবক অর্পণের মাধ্যমে সর্বকালের সর্বশ্রেষ্ঠ এই বাঙালির প্রতি শ্রদ্ধা জানান। তাঁরা সেখানে ফাতেহা পাঠ করেন এবং বঙ্গবন্ধুর বিদেহি আত্মার শান্তি কামনা করে অনুষ্ঠিত বিশেষ মোনাজাতে অংশগ্রহণ করেন। এরআগে, সকাল ১১টায় বাংলাদেশ বিমান বাহিনীর একটি হেলিকপ্টার যোগে প্রধানমন্ত্রী জাতির পিতার পৈত্রিক নিবাস গোপালগঞ্জের টুঙ্গিপাড়া এসে পৌঁছান। টুঙ্গিপাড়া পৌঁছে প্রধানমন্ত্রী বঙ্গবন্ধুর সমাধিতে পবিত্র কোরআন তেলাওয়াত করেন এবং ফাতেহা পাঠ করেন। গত ২০ এবং ২১ আগস্ট উপমহাদেশের অন্যতম প্রাচীন ও বৃহৎ রাজনৈতিক সংগঠন বাংলাদেশ আওয়ামী লীগের ২১ তম জাতীয় সম্মেলনে শেখ হাসিনা পর পর নবমবারের মত সভাপতি এবং ওবায়দুল কাদের টানা দ্বিতীয় বারের মত সাধারণ সম্পাদক নির্বাচিত হন।

‘সরকারের উন্নয়নের পাশাপাশি দুর্নীতিতেও আচ্ছন্ন হয়ে যাচ্ছে গোটা দেশ’

ঢাকা অফিস \  জাতীয় সমাজতান্ত্রিক দল জাসদের কেন্দ্রীয় সাধারণ সম্পাদক শিরিন আখতার এমপি বলেছেন, প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার নেতৃত্বে উন্নয়নের মাইল ফলকে দেশ এগিয়ে যাচ্ছে এবং সঙ্গে সঙ্গে দূর্নীতিতেও ছেয়ে যাচ্ছে গোটা দেশ। শুক্রবার দুপুরে পিরোজপুর জেলা জাসদের ত্রি-বার্ষিক সম্মেলনের উদ্বোধনী অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথির বক্তব্যে তিনি এসব কথা বলেন। তিনি বলেন, সরকারের ভেতরে থাকা কতিপয় অসাধু রাজনৈতিক নেতা, কিছু অসাধু-দূর্ণীতি পরায়ণ কর্মকর্তার কারণে রূপপুর বালিশ কান্ডের মতো বড় বড় দুর্নীতির জন্য সব উন্নয়ন আজ থমকে যাচ্ছে। ওই সব ছাড়পোকা, উইপোকাদের দুর্নীতির মূল উৎপাটন করার জন্যই জাসদ আজ ক্ষুধামুক্ত, দারিদ্র্যমুক্ত, বৈষম্যহীন ও অসা¤প্রদায়িক বাংলাদেশ গড়ার লক্ষ্যে আন্দোলন করে যাচ্ছে। এ সময় শিরিন আখতার আরও বলেন, দেশ যখন আজ গণতন্ত্রের দিকে এগিয়ে যাচ্ছে, ঠিক তখনই একটি সা¤প্রদায়িক শক্তি এই উন্নয়নের ধারাবাহিকতাকে নস্যাৎ করার জন্য জঙ্গি তৎপরতার মাধ্যমে এ দেশের যুব সমাজকে ভিন্ন পথে চলিত করার অপ-তৎপরতা চালাচ্ছে। এদেরকে দূর করতে মুক্তিযুদ্ধের চেতনায় বাংলাদেশকে এগিয়ে নিতে জাসদ আগামীদিনগুলোতে পুরষদের পাশপাশি নারী ও যুবসমাজকে নিয়েই সংবিধানের মূল লক্ষ্য সমাজতন্ত্র ও গণতন্ত্রের আন্দোলন জোরদার করতে বদ্ধ পরিকর। সরকারি দল আওয়ামী লীগকে উদ্দেশ্য করে শিরিন আখতার বলেন, সারাদিন বঙ্গবন্ধুকে জপ করবেন, মুজিববর্ষ পালন করবেন, কিন্তু বঙ্গবন্ধুর আদর্শ, তার স্বপ্ন সোনার বংলাদেশ গড়ার জন্য তার দেয়া সংবিধান থেকে দূরে থেকে দুর্নীতিতে জড়িয়ে পরবেন, তাতে-তো মুক্তিযুদ্ধের চেতনা বা¯Íবায়ন করে শোষন বৈষম্যহীন সোনার বাংলা গড়া যাবে না। দেশ থেকে দুর্নীতি, দূরাচার, বৈষম্য দূর করুন তা হলেই হবে মুজিবর্ষের স্বার্থকতা। জেলা জাসদের সভাপতি চিত্তরঞ্জন বিশ্বাসের সভাপতিত্বে এ সময় অন্যদের মধ্যে বক্তব্য রাখেন কেন্দ্রীয় জাসদের সহ সভাপতি সফিউদ্দিন মোল্লা, যুগ্ম সম্পাদক অ্যাডভোকেট হাবিবুর রহমান শওকত, ওবায়দুর রহমান চুন্নু, সাংগঠনিক সম্পাদক আনোয়ারুল হক, সহ-দফতর সম্পাদক সাজ্জাদ হোসেন, কেন্দ্রীয় সদস্য অ্যাডভোকেট আহসানুল কবির বাদল ও জেলা সাধারণ সম্পাদক সাইদুল ইসলাম ডালিম প্রমুখ। পরে কেন্দ্রীয যুগ্ম সাধারণ সম্পাদক ওবায়দুর রহমান চুন্নু নতুন কমিটিতে পুনরায় সভাপতি পদে চিত্ত রঞ্জন বিশ্বাসকে সভাপতি এবং সাইদুল ইসলাম ডালিমকে সাধারণ সম্পাদক করে আগামী তিন বছরের জন্য ৩৩ সদস্য বিশিষ্ট পিরোজপুর জেলা জাসদের কমিটি ঘোষণা করেন।

শেখ হাসিনা ও তার পরিবার শতভাগ দুর্নীতিমুক্ত – গণপূর্তমন্ত্রী

ঢাকা অফিস \ প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা ও তার পরিবার শতভাগ দুর্নীতিমুক্ত বলে মন্তব্য করেছেন গৃহায়ন ও গণপূর্তমন্ত্রী শ.ম রেজাউল করিম। তিনি বলেন, দেশের উন্নয়নে সবাইকে দুর্নীতি এড়িয়ে চলতে হবে। শেখ হাসিনা ও তার পরিবার শতভাগ দুর্নীতিমুক্ত। তার পরিবারের সদস্যরা চাকরি করে খান। বোন গণপরিবহনে করে চলেন। শুক্রবার দুপুরে জেলার নাজিরপুর উপজেলার বাবুরহাট মাধ্যমিক বিদ্যালয়ের ৫০ বছর (সুবর্ণ জয়ন্তী) পূর্তী উৎসবে প্রধান অতিথির বক্তব্যে মন্ত্রী এ কথা বলেন। গৃহায়ন ও গণপূর্তমন্ত্রী শ.ম রেজাউল করিম বলেন, শেখ হাসিনার সরকার শিক্ষাবান্ধব সরকার। তাই প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা এদেশের শিক্ষা ব্যবস্থাকে স¤প্রসারণের জন্য আপ্রাণ চেষ্টা করে যাচ্ছেন। তিনি দেশের নাগরিকদের সুনাগরিক ও সুশিক্ষিত হিসাবে গড়ে তুলতে অবিরাম পরিশ্রম করে চলছেন। তাই তিনি ডিগ্রি পর্যন্ত বিনা বেতনে পড়ার সুযোগ করে দিয়েছেন। তিনি বলেন, দেশের শিক্ষা ব্যবস্থাকে জাতীয়করণ করতে সব কার্যক্রম চলছে। একজন শিশুও যাতে পাঠ থেকে ঝড়ে না পড়ে সে জন্য দেশের শিক্ষা ব্যবস্থার উন্নয়নে কাজ চলছে। শিক্ষা গ্রহণের ব্যবস্থা তিনি প্রাথমিক ও মাধ্যমিক শিক্ষার্থীদের বিনামূল্যে বই প্রদান করছেন। বিদ্যালয়ের পরিচালনা পরিষদের সভাপতি মো. আতিয়ার রহমান চৌধুরী নান্নুর সভাপতিত্বে ও অনুষ্ঠান উদযাপন কমিটির আহŸায়ক মো. জাহিদুল ইসলাম জাহিদের সঞ্চালনায় সভায় বক্তব্য রাখেন পিরোজপুর জেলা পুলিশ সুপার মো. হায়াতুল ইসলাম খান, ভারপ্রাপ্ত জেলা প্রশাসক নাহিদ ফারজানা সিদ্দিকী, গণপূর্তের নির্বাহী প্রকৌশলী বিশ্বনাথ বনিক, এলজিইডি নির্বাহী প্রকৌশলী সুশান্ত রঞ্জন রায়, শিক্ষা অধিদফতরের নির্বাহী প্রকৌশলী প্রতিভা সরকার, ভারপ্রাপ্ত উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা ফাহমি মো. শায়েফ প্রমুখ। বিদ্যালয়ের সাবেক ছাত্রদের মধ্য থেকে বক্তব্য রাখেন পিরোজপুর সরকারি সোহরাওয়ার্দী কলেজের সাবেক অধ্যক্ষ মো. দেলোয়ার হোসেন, বিআইডবি¬উটিএর অতিরিক্ত চিফ ইঞ্জিনিয়ার এম আতাহার আলী সরদার, প্রদীপ কুমার দত্ত, ইউপি চেয়ারম্যান মাস্টার মনিরুজ্জামান আতিয়ার, উপজেলা ছাত্রলীগ আহŸায়ক মো. তরিকুল ইসরাম চৌধুরী তাপস, মো. বদিউজ্জামান ভুইয়া প্রমুখ। এর আগে মন্ত্রী প্রায় ৩ কোটি ১৭ লাখ টাকা ব্যয়ে ওই বিদ্যালয়ের জন্য বরাদ্দকৃত নতুন একটি চারতলা একাডেমিক ভবনের ভিত্তি প্র¯Íর স্থাপন করেন। এ উপলক্ষে দিনব্যাপী অনুষ্ঠানের আযোজন করা হয়। এর আগে সকাল সোয়া ১০টায় উপজেলা পরিষদ চত্বরের ভেতর মুক্তিযোদ্ধা সংসদ ভবন সংলগ্ন বঙ্গবন্ধুর ম্যুরাল উদ্বোধন করেন। পরে এ উপলক্ষে উপজেলা স্বাধীনতা মঞ্চে উপজেলা ভারপ্রাপ্ত নির্বাহী কর্মকতা সায়েফ মো. ফাহমির সভাপতিত্বে আলোচনা সভা ও দোয়া মাহফিলের আয়োজন করা হয়। নাজিরপুর প্রেসক্লাবের সাবেক যুগ্ম সাধারণ সম্পাদক এসএম রোকনুজ্জামানের সঞ্চালনায় আলোচনা সভায় প্রধান অতিথির বক্তব্যে মন্ত্রী বলেন, বঙ্গবন্ধুর জন্ম না হলে এ দেশ স্বাধীন হতো না। তিনি তার (বঙ্গবন্ধু) জীবনের অধিকাংশ সময় এ জাতির জন্য কারাগারে থেকেছেন। পাকি¯Íান সরকার তাকে পূর্বপাকি¯Íানের রাষ্ট্রপ্রধানের দায়িত্ব পালনের প্র¯Íাব দিলেও তিনি তা প্রত্যাখ্যান করেছেন। তাকে পাকি¯Íান সরকার যতবার পশ্চিম পাকি¯Íানের কারাগারে নিয়েছে ততবার তিনি বলেছেন, আমার ফাঁসি হলেও তোমরা আমার লাশটা স্বদেশে (বাংলাদেশে) পাঠিয়ে দিও। এ সময় তিনি আরও বলেন, শীঘ্রই পিরোজপুর-১ আসনের সব অফিস-আদালতসহ দেশের গণপূর্তের আওতাধীন সব অফিসের সামনে বঙ্গবন্ধুর ম্যুরাল স্থাপন করা হবে। প্রায় ১২ লাখ টাকা ব্যয়ে এ ম্যুরালটি নির্মাণ করা হয়েছে।

রাজধানীতে বিএনপির বিক্ষোভ সমাবেশ

ঢাকা অফিস \ বিএনপি চেয়ারপারসন খালেদা জিয়ার নিঃশর্ত মুক্তি এবং দলের ভারপ্রাপ্ত চেয়ারম্যান তারেক রহমানের বিরুদ্ধে দায়েরকৃত মিথ্যা মামলা ও সাজা প্রত্যাহারের দাবিতে রাজধানীতে বিক্ষোভ মিছিল করেছে দলটি। গতকাল শুক্রবার দুপুর আড়াইটায় বিক্ষোভ মিছিল উত্তরা-আবদুল্লাহপুর থেকে শুরু হয়ে মাসকাট প্লাজার কাছে গিয়ে শেষ হয়। বিক্ষোভ মিছিলে নেতৃত্ব দেন বিএনপির সিনিয়র যুগ্ম-মহাসচিব রুহুল কবির রিজভী। মিছিলে স্থানীয় বিএনপি এবং অঙ্গ ও সহযোগী সংগঠনের বিপুল সংখ্যক নেতাকর্মী অংশগ্রহণ করেন। মিছিল শেষে এক পথসভায় সংক্ষিপ্ত বক্তব্যে রুহুল কবির রিজভী বলেন, ‘দেশ ও জনগণ এখন ফ্যাসিবাদী শাসনের চরম কষাঘাতে জর্জরিত। একদলীয় শাসনকে চিরস্থায়ীত্ব দেয়ার জন্যই বিএনপি চেয়ারপারসন ও গণমানুষের প্রাণপ্রিয় নেত্রী দেশনেত্রী বেগম খালেদা জিয়াকে মিথ্যা মামলায় অন্যায়ভাবে বন্দি করা হয়েছে।’ তিনি বলেন, ‘বাধাহীনভাবে জাল-জালিয়াতি ও ভোট ডাকাতির মাধ্যমে ২০১৮ সালের ৩০ ডিসেম্বরের নির্বাচন আগের রাতেই সমাপ্ত করতে আপোষহীন দেশনেত্রী বেগম খালেদা জিয়াকে বানোয়াট মামলায় অন্যায়ভাবে কারাগারে আটকে রাখার মাস্টারপ¬্যান করেন বর্তমান প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা। আর এই মাস্টারপ¬্যানের অংশ হিসেবে বেগম জিয়াকে কারাবন্দি রেখে আইনশৃঙ্খলা বাহিনী দিয়ে দেশের মানুষের সোচ্চার কন্ঠকে ¯Íব্ধ করে আজীবন দুঃশাসন চলমান রাখতেই দেশনেত্রীকে মুক্তি দেয়া হচ্ছে না, তাকে যথাযথ সুচিকিৎসা থেকেও বঞ্চিত করা হচ্ছে। দেশনেত্রীর শারীরিক অবস্থা এখন অত্যন্ত সংকটাপন্ন। কিন্তু সরকার ও সরকারপ্রধান দেশনেত্রীর মুক্তি ও সুচিকিৎসা নিয়ে নির্বিকার।’ তবে আওয়ামী সরকারের বন্দিশালা ভেঙে দেশনেত্রীকে মুক্ত করে আনতে জনগণ এখন ঐক্যবদ্ধ উল্লেখ করে বিএনপির এই সিনিয়র নেতা বলেন, ‘গণতন্ত্রের প্রতিক’ দেশনেত্রী বেগম খালেদা জিয়াকে কারামুক্ত করে দেশের মানুষের নিরাপত্তা নিশ্চিত করতে বর্তমান মিডনাইট সরকারের পতন ঘটাতে হবে, অবাধ ও সুষ্ঠু নির্বাচনের মাধ্যমে জনগণের সরকার প্রতিষ্ঠায় সবাইকে ঐক্যবদ্ধ হতে হবে।’ তিনি বলেন, আমি আবারও অবিলম্বে দেশনেত্রী বেগম খালেদা জিয়ার নিঃশর্ত মুক্তি এবং তাকে তার পছন্দের হাসপাতালে সুচিকিৎসার সুযোগ দেয়ার দাবি জানাচ্ছি। পাশাপাশি কারাবন্দি সব নেতাকর্মীরও নিঃশর্ত মুক্তি দাবি করছি।

কুষ্টিয়ায় বিএমপিসি এর আয়োজনে বঙ্গবন্ধুর জন্মশতবার্ষিকী উপলক্ষে মাদক বিরোধী সমাবেশ ও সাংস্কৃতিক অনুষ্ঠান

নিজ সংবাদ \ গতকাল শুক্রবার বিকেল ৩টা থেকে বাংলাদেশ মাদক প্রতিরোধ কমিটি (বিএমপিসি) এর  আয়োজনে বঙ্গবন্ধুর জন্মশতবার্ষিকী উপলক্ষে মাদক বিরোধী সমাবেশ ও সাংস্কৃতিক অনুষ্ঠান অনুষ্ঠিত  হয়েছে। বিএমপিসির সভাপতি হাসিবুর রহমান রিজুর সভাপত্বিতে  প্রধান অতিথি হিসেবে উপস্থিত থেকে বক্তব্য রাখেন কুষ্টিয়া জেলা আওয়ামীলীগের সভাপতি আলহাজ্ব সদর উদ্দিন খান। বক্তব্যে তিনি বলেন মাদক বিরোধী  আন্দোলনকে এগিয়ে নিতে সকলকে এক হয়ে কাজ করতে হবে। সামাজিকভাবে মাদককে বয়কট করতে হবে। তবেই এই সমাজকে মাদকমুক্ত করা সম্ভব। মাদককে রুখতে সকলকে এক হয়ে শপথ নিতে হবে। পরিশেষে তিনি বলেন মাদক প্রতিরোধ কমিটি  হরিপুরের ন্যায় প্রতিটি ইউনিয়নে ইউনিয়নে ছড়িয়ে দিতে হবে।  বিশেষ অতিথির বক্তব্যে জেলা আওয়ামীলীগের সাধারন সম্পাদক বীর মুক্তিযোদ্ধা আজগর আলী বলেন দলমত নির্বিশেষে একমত হয়ে মাদকমুক্ত করতে কাজ করতে হবে। মাদক থেকে নিজেকে দুরে রেখে এক হয়ে কাজ করলেই মাদকমুক্ত সমাজ গড়া সম্ভব। আওয়ামীলীগের নেতাকর্মীদের সাবধান করে বলেন সামনে যে নতুন কমিটি হতে যাচ্ছে এই কমিটিতে  কোন মাদকসেবী বা মাদকের পৃষ্ঠপোষকদের ঠাই হবে না। অতিরিক্ত পুলিশ সুপার প্রশাসন ও অপরাধ মোস্তাফিজুর রহমান বলেন সুযোগ্য হতে পারবো তখনি যখন মাদক বিরোধী সমাবেশ করার প্রয়োজন হবে না। চলুন আমরা নিজেরা পরিবর্তন হয়, নিজেরা পরিবর্তন হলেই সমাজ পরিবর্তন হয়ে যাবে। আমরা সকলেই নিজের সন্তানদের ডাক্তার, ইঞ্জিনিয়ার বানাতে চায় কিন্তুু আমরা নিজের সন্তানকে ভালো মানুষ হিসেবে গড়ে তুলতে পারি না। আমরা কি ভাবতে পারিনা বঙ্গবন্ধুর মত আমাদেরও সন্তান হোক। অন্যান্যের মধ্যে বক্তব্য রাখেন জেলা আওয়ামীলীগের সাবেক দপ্তর সম্পাদক হাজী তরিকুল ইসলাম মানিক, মাদক দ্রব্য নিয়ন্ত্রন অধিদপ্তর কুষ্টিয়ার সহকারি পরিচালক শিরীন আক্তার, বিএমপিসি এর সাধারন সম্পাদক মুরাদ হোসেন লেমন, দৌলতপুর উপজেলা মাদক প্রতিরোধ কমিটির সভাপতি ও জেলা পরিষদের সদস্য আসাদুর জামান চৌধুরী লোটন, হাটশ হরিপুর ইউপি চেয়ারম্যান ও হরিপুর ইউনিয়নের বিএমপিসির সভাপতি এম সম্পা মাহমুদ, হাটশ হরিপুর ইউনিয়ন আওয়ামীলীগের সভাপতি মোস্তাফিজুর রহমান মিলন, সাধারন সম্পাদক হাজী মো: আরিফুল ইসলাম। অনুষ্ঠানে উপস্থিত ছিলেন সদর উপজেলা মাদক প্রতিরোধ কমিটির সভাপতি নজরুল ইসলাম প্রধান, সাধারন সম্পাদক জিল্লুর রহমান, মিরপুর উপজেলা মাদক প্রতিরোধ কমিটির যুগ্ন আহবায়ক হাসানুর জামান খান তাপস, শহর মাদক প্রতিরোধ কমিটির সাধারন সম্পাদক  শরিফুল ইসলাম শরিফ সহ বিভিন্ন ইউনিটের নেতৃবৃন্দ। আলোচনা সভা পরিচালনা করেন কুষ্টিয়া  জেলা মাদক প্রতিরোধ কমিটির সাধারন সম্পাদক এম সোহাগ হাসান ও হাটশ হরিপুর ইউনিয়ন মাদক প্রতিরোধ কমিটির সাধারন সম্পাদক ইঞ্জিনিয়ার জুয়েল রানা।

ভোট থেকে সরানোর ষড়যন্ত্র হচ্ছে, পিছু হটব না – তাবিথ

ঢাকা অফিস \ নির্বাচন থেকে সরিয়ে দেয়ার ষড়যন্ত্র করা হচ্ছে বলে অভিযোগ করেছেন ঢাকা উত্তর সিটি কর্পোরেশন নির্বাচনে বিএনপির মেয়রপ্রার্থী তাবিথ আউয়াল। যতই ষড়যন্ত্র হোক পিছু হটবেন না বলে প্রত্যয় ব্যক্ত করেছেন তিনি। গতকাল শুক্রবার সকালে রাজধানীর মধ্য বাড্ডায় লুৎফুন টাওয়ারের সামনে পথসভায় তাবিথ এ কথা বলেন। তিনি বলেন, হেঁটে হেঁটে মা-বোনের কাছে দোয়া চেয়েছি। ব্যাপক সাড়া পাচ্ছি। নির্বাচনে জয় আমাদের সুনিশ্চিত। বিষয়টি টের পেয়ে প্রতিপক্ষ চেষ্টা করছে ভোট থেকে যে করেই হোক আমাকে সরিয়ে দিতে। এ জন্য তারা হামলাও করছে। আদালতের দারস্থও হয়েছে। ভোটের মাঠ থেকে আমরা পিছু হটব না। খালেদা জিয়াকে মুক্ত করতে ধানের শীষে ভোট চেয়ে তাবিথ বলেন, ঢাকাকে সুন্দর করে সাজাতে হলে ধানের শীষে ভোট দিতে হবে। ১ ফেব্র“য়ারি আমরা সবাই ভোটকেন্দ্র যাব, ধানের শীষ প্রতীকে ভোট দেব। বিএনপি চেয়ারপারসন খালেদা জিয়াকে মুক্ত করতে, ভারপ্রাপ্ত চেয়ারম্যান তারেক রহমানকে দেশে ফিরিয়ে আনতে, সুন্দর-আধুনিক ঢাকা গড়তে ধানের শীষে ভোট দেয়ার কোনো বিকল্প নেই। এ সময় ঐক্যফ্রন্টের নেতা ও জেএসডির সভাপতি আ স ম আবদুর রব বলেন, এই নির্বাচন খালেদা জিয়ার মুক্তির নির্বাচন। গণতন্ত্র ফিরিয়ে আনার নির্বাচন। সরকার ধানের শীষের বিজয় ঠেকাতে পারবে না। তারা ভয় পেয়ে গেছে। পুলিশ ভাইয়েরা জনগণের বিপক্ষে গিয়ে কাজ করবেন না। আপনারা জনগণের সেবক। তাই নিরপেক্ষ হয়ে কাজ করুন। জনগণকে ভোটকেন্দ্রে গিয়ে ভোট দেয়ার আহŸান জানিয়েছেন বিএনপির স্থায়ী কমিটির সদস্য আমীর খসরু মাহমুদ চৌধুরী। তিনি বলেন, আওয়ামী লীগের প্রার্থীরা আচরণবিধি লঙ্ঘন করে চলেছে। ভোটচোরদের প্রতিহত করতে হবে। কেন্দ্র পাহারা দিতে হবে।’ পথসভায় আরও উপস্থিত ছিলেন বিএনপি চেয়ারপারসনের উপদেষ্টা শামসুজ্জামান দুদু, যুগ্ম মহাসচিব ব্যারিস্টার মাহবুব উদ্দিন খোকন, বাংলাদেশ লেবার পার্টির চেয়ারম্যান মো¯Íাফিজুর রহমান ইরান প্রমুখ।