‘বঙ্গবন্ধুর উন্নয়ন দর্শন’ শীর্ষক আলোচনা সভায় আতাউর রহমান আতা

বঙ্গবন্ধুর দর্শন ও উন্নয়ন বাস্তবে রুপ নিচ্ছে বঙ্গবন্ধু কন্যা শেখ হাসিনার নেতৃত্বে

সুজন কর্মকার ॥ কুষ্টিয়া সদর উপজেলা পরিষদের চেয়ারম্যান ও শহর আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক আতাউর রহমান আতা বলেছেন, বঙ্গবন্ধুর দর্শন ও উন্নয়ন বাস্তবে রুপ নিচ্ছে বঙ্গবন্ধু কন্যা শেখ হাসিনার নেতৃত্বে। ক্ষুধা ও দারিদ্রমুক্ত সুখী সমৃদ্ধিশীল বাংলাদেশ গড়তে বঙ্গবন্ধু যে স্বপ্ন দেখেছিলেন সে স্বপ্নকে ধারন করেই বঙ্গবন্ধুর কন্যা প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা পথ চলছেন। সদর উপজেলা পরিষদের চেয়ারম্যান আতাউর রহমান আতা আরো বলেন, বঙ্গবন্ধুর দর্শন ও উন্নয়নকে বুঁকে ধারন করেই আমাদের একসাথে পথ চলতে হবে। সেই পথকে অনুসরণ করে বঙ্গবন্ধুর দর্শন ও উন্নয়নের আদলে আগামী ২০২১ সালে মধ্যম আয়ের ও ২০৪১ সালে উন্নত দেশের কাতারে পরিনত করতে চায় প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা। জাতির জনক বঙ্গবন্ধুর শতবর্ষ উপলক্ষে কুষ্টিয়া সদর উপজেলা প্রশাসনের আয়োজনে, ‘বঙ্গবন্ধুর উন্নয়ন দর্শন’ শীর্ষক আলোচনা সভায় প্রধান অতিথির বক্তব্যে তিনি এসব কথা বলেন। ১১ জানুয়ারি শনিবার সকাল ১০ টায় সদর উপজেলা পরিষদের অডিটোরিয়ামে এ ‘বঙ্গবন্ধুর উন্নয়ন দর্শন’ শীর্ষক আলোচনা সভা অনুষ্ঠিত হয়।

সদর উপজেলা পরিষদের নির্বাহী অফিসার জুবায়ের হোসেন চৌধুরী’র সভাপতিত্বে বিশেষ অতিথি ছিলেন, সদর উপজেলা আওয়ামী লীগের সভাপতি বিজ্ঞ জিপি এ্যাডঃ আ স ম আখতারুজ্জামান মাসুম এবং সদর উপজেলা আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক রেজাউল হক। এ সময় আরো উপস্থিত ছিলেন সদর উপজেলা পরিষদের ভাইস চেয়ারম্যান আবু তৈয়ব বাদশা সহ অন্যান্য কর্মকর্তাবৃন্দ। এর আগে বর্ণাঢ্য আনন্দ শোভাযাত্রা বের করা হয়। আনন্দ শোভাযাত্রার নেতৃত্ব দেন কুষ্টিয়া সদর উপজেলা পরিষদের চেয়ারম্যান ও শহর আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক আতাউর রহমান আতা। সন্ধ্যায় মনোজ্ঞ সাংস্কৃতিক অনুষ্ঠান পরিবেশিত হয়। রাতে জমকালো আতশবাজি ফোটানো হয়।

শীতার্তদের মাঝে বিশিষ্ট ব্যবসায়ী মাসুদের কম্বল বিতরণ

মিলন আলী ॥ কুষ্টিয়ার মিরপুর উপজেলার হালসা বাজারের বিশিষ্ট ব্যবসায়ী সমাজসেবক মাসুদ রানা নিজ গ্রামে শতাধিক দরিদ্র অসহায় পথিক ছিন্নমুল শীতার্ত মানুষের শীত নিবারন করার জন্য কম্বল বিতরন  করেন। প্রতি বছর শীতকালে  ও ঈদের সময় গ্রাম হালসা আমবাড়ীয়া নগরবাকা ও আসে পাশের গ্রামে দরিদ্র গরীব ছিন্নমুল ভীক্ষকদের মাঝে টাকা কাপড় শীতবস্ত্র বিতরন করে থাকে সমাজসেবক, দানবীর হালসা বাজারের বিশিষ্ট ব্যবসায়ী মাসুদ রানা। তারই ধারাবাহিকতায় মাসুদ এই হাড় কাপানো প্রচন্ড শীতে গরীব মানুষের মাঝে শীতবস্ত্র কম্বল বিতরন করেন।

দৌলতপুরে মুজিববর্ষ উপলক্ষে মনোজ্ঞ আতশবাজি

দৌলতপুর প্রতিনিধি ॥ জাতির পিতা বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমান-এঁর জন্ম শতবার্ষিকী ও মুজিববর্ষ-২০২০ উপলক্ষ্যে সারা দেশের ন্যায় কুষ্টিয়ার দৌলতপুরেও মনোজ্ঞ আতশবাজি অনুষ্ঠিত হয়েছে। শনিবার রাত ৮টা ৫৭ মিনিটে উপজেলা পরিষদ চত্বর মাঠে এ আতশবাজি শুরু করা হয়। এসময় দৌলতপুর উপজেলা চেয়ারম্যান এ্যাড. এজাজ আহমেদ মামুন, দৌলতপুর উপজেলা নির্বাহী অফিসার শারমিন আক্তার, দৌলতপুর সহকারী কমিশনার (ভূমি) মো. আজগর আলী ও মহিলা ভাইস চেয়ারম্যান সোনালী খাতুন আলেয়ার উপস্থিতিতে উপজেলা প্রশাসনের বিভিন্ন দপ্তরের কর্মকর্তা, মুক্তিযোদ্ধাগণ, সাংবাদিক ও বিভিন্ন শ্রেনী পেশার মানুষ মনোমুগ্ধকর আতশবাজি উপভোগ করেন। দৌলতপুর উপজেলা প্রশাসনের আয়োজনে ও সহযোগিতায় বঙ্গবন্ধুর স্বদেশ প্রত্যাবর্তন দিবস এবং মুজিববর্ষ-২০২০ এ ক্ষণগণনা দু’দিনব্যাপী অনুষ্ঠানের শেষ আয়োজন ছিল মনোজ্ঞ আতশবাজি।

মুজিববর্ষ ও বঙ্গবন্ধুর স্বদেশ প্রত্যাবর্তন দিবসে কুষ্টিয়া জেলা মুক্তিযোদ্ধা সাংগঠনিক কমান্ডের বর্ণিল কর্মসূচি পালন

নিজ সংবাদ ॥ জাতির পিতা বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের জন্মশত বার্ষিকী মুজিববর্ষ-২০২০ ও ১০ জানুয়ারি বঙ্গবন্ধুর স্বদেশ প্রত্যাবর্তন দিবস বর্ণিল আয়োজনে উদ্যাপন করেছে, বাংলাদেশ মুক্তিযোদ্ধা সংসদ কুষ্টিয়া জেলা সাংগঠনিক কমান্ডের বীর মুক্তিযোদ্ধারা। জেলা আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক বীর মুক্তিযোদ্ধা আজগর আলীর নেতৃত্বে এবং সাংগঠনিক কমান্ডের কমান্ডার ও মুক্তিযোদ্ধা ইউনিট কমান্ডের সাবেক জেলা কমান্ডার বীর মুক্তিযোদ্ধা মানিক কুমার ঘোষের সার্বিক তত্বাবধানে সাংগঠনিক কমান্ডের ব্যানারে বীর মুক্তিযোদ্ধারা গলায় উত্তরীয়, হাতে জাতীয় পতাকা, মুক্তিযুদ্ধের পতাকা ও রং বেরংয়ের বেলুন নিয়ে বাদ্যের তালে তালে জেলা কালেক্টরেট চত্বরে যায়। সেখানে বঙ্গবন্ধুর ভাস্কর্য্যে ফুল দিয়ে শ্রদ্ধা নিবেদন করেন বীর মুক্তিযোদ্ধারা। পরে জেলা প্রশাসনের সাথে সাংগঠনিক কমান্ডের বণ্যাঢ্য আনন্দ র‌্যালিটি শহর প্রদক্ষিণ শেষে পূনরায় কালেক্টরেট চত্বরে এসে জেলা প্রশাসন আয়োজিত কর্মসূচিতে অংশগ্রহণ করেন। এ সময় উপস্থিত ছিলেন ডেপুটি কমান্ডার বীর মুক্তিযোদ্ধা মকবুল হোসেন, যুদ্ধাহত বীর মুক্তিযোদ্ধা ইকবাল মাসুদ, কুষ্টিয়া সদর উপজেলা কমান্ডের সাবেক উপজেলা কমান্ডার বীর মুক্তিযোদ্ধা খন্দকার লিয়াকত আলী নীলা, যুদ্ধাহত বীর মুক্তিযোদ্ধা স্বপন নাগ চৌধুরী, সাবেক সহকারী কমান্ডার  বীর মুক্তিযোদ্ধা মোঃ সাইদুর রহমান, সহকারী কমান্ডার  বীর মুক্তিযোদ্ধা শেখ আবু হানিফ, বীর মুক্তিযোদ্ধা জাহিদ হোসেন, বীর মুক্তিযোদ্ধা আহসান হাবীব দুলাল, বীর মুক্তিযোদ্ধা ডি এম এ কাদের, , বীর মুক্তিযোদ্ধা শহিদুল ইসলাম (কোরবান), বীর মুক্তিযোদ্ধা জিল্লুর রহমান, বীর মুক্তিযোদ্ধা মকবুল হোসেন, সার্জেন্ট রিয়াজুল হক, বীর মুক্তিযোদ্ধা সুবেদার খাইরুল ইসলাম, এমদাদুল হক, মঈন উদ্দিন, আ: করিম, বিল্লাল মাষ্টার, আমির হোসেন, জাহাঙ্গীর হোসেন, আব্দুল হাকিম, যুদ্ধাহত বীর মুক্তিযোদ্ধা শেখ নিজাম উদ্দিন, ইয়াছিন আলী, ওমর আলী, সার্জেন্ট (অব:) লোকমান হোসেন, রিয়াজ উদ্দিন মাস্টার, হাসিবুর রহমান, ছাত্তার মাস্টার, শহিদুল ইসলাম মনি, সৈনিক নুরুজ্জামান, ডা: মতিয়ার রহমান, লোকমান হাকিম, শের আলী, খন্দকার লিয়াকত আলী, আ: লতিফ, ওমর আলী, আবু দাউদ, আ: মজিদ, মোফাজ্জেল হোসেন রিন্টু, মিজানুর রহমান, আবু সাঈদ, আবুল কাশেম, শেখ মনির উদ্দিন, নজরুল ইসলাম, আব্দুর রাশেদ, শেখ কাইজার হোসেন, সিরাজুল ইসলাম, জেলা সেক্টর কমান্ডারস ফোরামের সেক্রেটারী সাইদুল ইসলাম সিরাজুল, মৃত মুক্তিযোদ্ধার সন্তান-সন্ততিসহ দুই শতাধিক মুক্তিযোদ্ধা উপস্থিত ছিলেন।

গাংনীতে সরকারী খাল দখল করে বাড়ি নির্মাণের অভিযোগ

গাংনী প্রতিনিধি ॥ মেহেরপুরের গাংনী উপজেলার ষোলটাকা ইউনিয়নের জুগিরগোফা গ্রামে রাস্তার পার্শ্বের সরকারী খাল দখল করে বাড়ি নির্মাণের অভিযোগ পাওয়া গেছে। জানা গেছে, জুগিরগোফা গ্রামের ভিটাপাড়া প্রভাবশালী পরিবারের সদস্য আব্দুল মজিদের ছেলে আশাদুল হক ও ইন্তাদুল হক এবং আতাবুলের প্রবাস ফেরত ছেলে বোরহান উদ্দীন সরকারী রাস্তার পার্শ্বের খাল অবৈধভাবে জবর দখল করে পাকা বাড়ি নির্মাণ করছেন। গ্রামবাসীরা জানান, সরকারী খাল দখল করে বাড়ি নির্মিত হলে জুগিরগোফা ভিটাপাড়ার কমবেশী ২০টি পরিবার জলাবদ্ধতায় নিমজ্জিত হবে। রাস্তার পার্শ্বের খাস খালের জমি দিয়ে বর্ষা কালের পানি নিষ্কাশন করা হয়। প্রভাবশালীরা গ্রামের পানি বের হওয়ার ড্রেনটি বন্ধ করে দিয়ে বাড়ি নির্মাণ করছেন। সরকারীভাবে পানি নিষ্কাশনের জন্য ইতোমধ্যেই ছোট্ট কালভার্ট নির্মাণ করা হয়েছে। গ্রামবাসীরা বাঁধা দিলেও সাবেক মেম্বর তাদের উপর চড়াও হয় এবং বাড়ি নির্মাণের আদেশ দেন। অবিলম্বে সরকারি জায়গায় বাড়ি নির্মাণ বন্ধ করা না হলে যে কোন সময় গ্রামবাসী ও দখলকারীদের মধ্যে রক্তক্ষয়ী সংঘর্ষের সম্ভাবনা রয়েছে। সে কারণে সরেজমিনে সরকারী সার্ভেয়ার দিয়ে অবিলম্বে সঠিক পরিমাপ করে বাড়ি নির্মাণের আদেশ দিলে সমস্যা নিরসন হয়। এনিয়ে আশাদুল জানায়, আমরা সরকারি খাল দখল করে বাড়ি নির্মাণ করছি না। ইতোপূর্বে অনেকবার আমিন দিয়ে  জমি পরিমাপ করা হয়েছে। আমরা গ্রামের পানি নিষ্কাশনের জন্য খাল বা ড্রেনের ব্যবস্থা রেখেছি। গ্রামের লোকজনের পানি বের করার জন্য আমি ব্যক্তিগতভাবে ড্রেন কেটে পানি বের করে দিই। এ ব্যাপারে গাংনী উপজেলা সহকারী কমিশনার (ভূমি) ইয়ানুর রহমান জানান, গ্রামবাসীর পক্ষ থেকে অভিযোগ  পাইনি। লিখিত অভিযোগ পেলে ব্যবস্থা নেয়া হবে।

গাংনীতে বায়রা লাইফ ইন্স্যুরেন্সের কর্মীসহ ৫ জনের বিরুদ্ধে মামলা

গাংনী প্রতিনিধি ॥ মেহেরপুরের গাংনীতে টাকা আত্মসাতের অভিযোগে বায়রা লাইফ ইন্স্যুরেন্সের কর্মী আনারুল ইসলাম ও তার স্ত্রীসহ ৫ জনের বিরুদ্ধে মামলা দায়ের করা হয়েছে। গাংনী উপজেলার তেঁতুলবাড়ীয়া ইউনিয়নের করমদী গ্রামের সিফাত আলীর মেয়ে নিলুফা খাতুন বাদি হয়ে মেহেরপুর সিনিয়র জুডিসিয়াল ম্যাজিস্ট্রেট আদালতে মামলাটি দায়ের করেন। মামলায় ২ জনের বিরুদ্ধে গ্রেফতারী পরোয়ানা ও ৩ জনের বিরুদ্ধে সমন জারি করেছে আদালত। সি আর মামলা নং ৪২৮/২০১৯ইং। মামলার আসামীরা হলেন-বায়রা লাইফ ইন্স্যুরেন্সের কোম্পানী পরিচালক, বায়রা লাইফ ইন্সুরেন্সের চুয়াডাঙ্গার সহকারী অফিসার বাশারুল ইসলাম, গাংনী উপজেলার করমদী গ্রামের বাগান পাড়ার পিয়ার বক্সের ছেলে আনারুল ইসলাম, তার স্ত্রী রাজিয়া খাতুন ও আনারুলের ভাতিজা আসাদ আলী। টাকা আত্মসাৎ মামলায় জামিন পেয়ে বাদীসহ পাওনাদারদের নানাভাবে হুমকি দেওয়ার অভিযোগ উঠেছে আনারুল ইসলামের বিরুদ্ধে। মামলার এজাহার ও বিভিন্ন সূত্রে জানা গেছে, নানা প্রলোভন দেখিয়ে আনারুল ইসলাম এ এলাকার অন্তত ৪৫জন নারী-পুরুষকে বায়রা লাইফ ইন্স্যুরেন্সে ডিপিএস করার জন্য ৫ লক্ষাধিক টাকা জমা নিয়েছেন। মেয়াদ পূর্ণ হওয়ার পরও টাকা ফেরত দিচ্ছেনা। ক্ষতিগ্রস্থরা আনারুল ইসলামের কাছে টাকা চাইতে গেলে উল্টো মামলার হুমকি প্রদান করা হয়েছে বলে অভিযোগ করেন তারা। এ ঘটনায় ক্ষতিগ্রস্থ পরিবারগুলোর মধ্যে চরম ক্ষোভ বিরাজ করছে।  ক্ষতিগ্রস্থ প্রতিবন্ধী তহমিনা খাতুন জানান, বায়রা লাইফ ইন্সুরেন্স করার কথা বলে আনারুল বিভিন্ন সময়ে বেশ কিছু টাকা হাতিয়ে নিয়েছে।  খেয়ে না খেয়ে অনেক কষ্ট করে তাকে টাকা দিয়েছিলাম। মেয়াদ পার হলেও টাকা ফেরত না দিয়ে টাকা চাওয়ার অপরাধে নানাভাবে হুমকি দিচ্ছে। জুলেখা খাতুন জানান, মোটা অংকের টাকার প্রলোভন দেখিয়ে বেশ কয়েক বছর পূর্বে  বায়রা লাইফ ইন্সুরেন্স করিয়ে দেন আনারুল ইসলাম। মেয়াদ শেষ হলেও টাকা ফেরত দিচ্ছে। অনেক কষ্ট করে আনারুলের হাতে টাকা তুলে দিয়েছিলাম। মাজেদা খাতুন জানান, আনারুলের বাড়িতে শ্রমিকের কাজ করেও টাকা পায়নি। টাকা চাইতে গেলে আনারুল বলে তোমার টাকা তো ইন্স্যুরেন্সে জমা করেছি। সেই টাকা আজও দেয়নি। দিনের পর দিন শ্রমিকের কাজ করেছি। মোশাররফ হোসেন জানান,পাওনা টাকা দেয়া তো দূরের কথা । নানা ভাবে হুমকি ও মিথ্যা অভিযোগ তুলে হয়রানী করছে। এছাড়া মেহেরপুর সদর উপজেলার আমঝুপি মানব উন্নয়ন কেন্দ্র মউকে এ বিষয়ে সালিস বৈঠকে টাকা ফেরত দেওয়ার জন্য নন জুডিসিয়াল স্টাম্পে লিখিত দিলেও টাকা ফেরত দেননি। আমঝুপি মানব উন্নয়ন কেন্দ্র মউকের অফিস সূত্রে জানা গেছে, নিলুফার আবেদনের প্রেক্ষিতে আনারুল ইসলামকে ডেকে বৈঠকে ০১/০৪/১৯ ইং তারিখ থেকে ৩ মাসের মধ্যে টাকা দেওয়ার সিদ্ধান্ত হয়। সেই টাকা ফেরত দেয়নি। প্রতিবন্ধী শমসের আলী জানান, অর্থ অভাবে প্রায় সময়ই অনাহারে অর্ধহারে থাকতে হয়। শ্রম বিক্রি করে  সামান্য আয় হয় তা দিয়ে সংসার চলে না। কিন্তু আনারুলের প্রলোভনে সংসারে কষ্ট করে উপার্জিত অর্থ তার হাতে তুলে দেই। সেই টাকা না দিয়ে উল্টো হুমকি দিচ্ছে। নিলুফা খাতুনের আইনজীবি সাথী বোস মিরা জানান,অর্থ আত্মসাৎ মামলায় ১ মাসের মধ্যে টাকা দেওয়ার মুচলেকা দিয়ে সম্প্রতি জামিন পেয়েছেন আনারুল ইসলাম। কিন্তু তার স্ত্রী রাজিয়া খাতুন পলাতক রয়েছে। এছাড়া অপর ৩ আসামীর বিরুদ্ধে সমন জারি করেছে আদালত। আগামি ২৩ জানুয়ারী এ মামলার শুনানী রয়েছে। বাদী, সাক্ষীসহ অন্যদের হুমকি দেওয়ার বিষয়টি আদালতের নজরে আনা হবে এবং জামিন বাতিলের আবেদন করা হবে। এবিষয়ে কথা বলতে আনারুল ইসলামের বাড়িলে গেলে তাকে পাওয়া যায়নি। এমনকি তার ব্যবহৃত মোবাইল ফোনে ৩ দিন কল দিলেও বন্ধ পাওয়া যায়।

মিরপুরে “বঙ্গবন্ধুর উন্নয়ন দর্শন” শীর্ষক আলোচনা সভা

কাঞ্চন কুমার ॥ কুষ্টিয়ার মিরপুরে মুজিব শতবর্ষ উদযাপন উপলক্ষে এক আলোচনা সভা অনুষ্ঠিত হয়েছে। এ উপলক্ষে বাংলাদেশ সরকারের অর্থ মন্ত্রণালয়ের অর্থনৈতিক সম্পর্ক বিভাগের উদ্যোগে দেশব্যাপী “অপ্রতিরোধ্য অগ্রযাত্রায় বাংলাদেশ” শীর্ষক অভিন্ন কর্মসূচী অনুষ্ঠিত হয়। গতকাল শনিবার সকালে উপজেলা পরিষদ চত্বর থেকে এক বর্ণাঢ্য আনন্দ শোভাযাত্রা বের হয়ে শহরের প্রধান প্রধান সড়ক প্রদক্ষিণ করেন। পরে উপজেলা পরিষদ মিলনায়তনে “বঙ্গবন্ধুর উন্নয়ন দর্শন” শীর্ষক আলোচনা সভা অনুষ্ঠিত হয়। উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা লিংকন বিশ্বাসের সভাপতিত্বে অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথি ছিলেন উপজেলা পরিষদের চেয়ারম্যান কামারুল আরেফিন।  বিশেষ অতিথি ছিলেন উপজেলা পরিষদের ভাইস-চেয়ারম্যান আবুল কাশেম জোয়ার্দ্দার, উপজেলা সহকারী কমিশনার (ভূমি) রকিবুল হাসান, মিরপুর থানার অফিসার ইনচার্জ আবুল কালাম, পোড়াদহ ইউনিয়ন পরিষদের চেয়ারম্যান অধ্যক্ষ আনোয়ারুজ্জামান বিশ্বাস মজনু, উপজেলা মুক্তিযোদ্ধা কমান্ডের সাবেক মুক্তিযোদ্ধা কমান্ডার নজরুল করিম, আফতাব উদ্দিন খান, সাবেক আহ্বায়ক মোশারফ হোসেন। উপজেলা মাধ্যমিক শিক্ষা কর্মকর্তা জুলফিকার হায়দারের পরিচালনায় এ সময়ে সদরপুর ইউনিয়ন পরিষদের চেয়ারম্যান রবিউল হক রবি, আমলা ইউনিয়ন পরিষদের চেয়ারম্যান আনোয়ারুল ইসলাম মালিথা, ফুলবাড়ীয়া ইউনিয়ন পরিষদের চেয়ারম্যান হাজী আব্দুস সালাম, চিথলিয়া ইউনিয়ন পরিষদের চেয়ারম্যান গিয়াস উদ্দিন পিস্তুল, তালবাড়ীয়া ইউনিয়ন পরিষদের চেয়ারম্যান আব্দুল হান্নান মন্ডল, ধুবইল ইউনিয়ন পরিষদের চেয়ারম্যান মাহাবুর রহমান মামুন, বহলবাড়ীয়া ইউনিয়ন পরিষদের চেয়ারম্যান সোহেল রানা, উপজেলা কৃষি কর্মকর্তা রমেশ চন্দ্র ঘোষ, উপজেলা ভারপ্রাপ্ত প্রাণিসম্পদ কর্মকর্তা ডাঃ সোহাগ রানা, উপজেলা পরিবার পরিকল্পনা কর্মকর্তা ডাঃ শামসুন নাহার, উপজেলা রির্সোস সেন্টারের ইন্সট্রাক্টর ফিরোজা পারভীন, উপজেলা সহকারী মাধ্যমিক শিক্ষা কর্মকর্তা হোসনে মোবারক, একাডেমিক সুপারভাইজার আশিকুজ্জামান, উপজেলা যুব উন্নয়ন কর্মকর্তা নূরুল ইসলাম নান্নু, উপজেলা মহিলা বিষয়ক কর্মকর্তা তমান্নাজ খন্দকার, উপজেলা সমবায় কর্মকর্তা নাজবীন আখতার, উপজেলা জনস্বাস্থ্য অধিদপ্তরের উপ-সহকারী প্রকৌশলী রিপন মিয়া, উপজেলা খাদ্য নিয়ন্ত্রক ইশরাত জাহান, সহকারী উপজেলা শিক্ষা কর্মকর্তা এস এম কামরুজ্জামান, জহুরুল ইসলাম, প্রেসক্লাবের সাধারণ সম্পাদক রাশেদুজ্জামান রিমন, উপজেলা শিল্পকলা একাডেমির সাধারণ সম্পাদক আসাদুজ্জামান মিঠু, বহলবাড়ীয়া ইউনিয়ন আওয়ামীলীগের সভাপতি নজরুল ইসলাম মানিক, সদরপুর ইউনিয়ন আওয়ামীলীগের সভাপতি মাজেদুর আলম বাচ্চু, সাধারণ সম্পাদক নিয়াত আলী লালু, চিথলিয়া ইউনিয়ন আওয়ামীলীগের সভাপতি এনামুল হক বাবলু, সাধারণ সম্পাদক আব্দুস সাত্তার, আমবাড়ীয়া ইউনিয়ন আওয়ামীলীগের সভাপতি আব্দুল বারী টুটুল, সাধারণ সম্পাদক সাইফুল ইসলাম, কুর্শা ইউনিয়ন আওয়ামীলীগের সভাপতি আব্দুল হান্নান, পৌর আওয়ামীলীগের সাধারণ সম্পাদক এ এস এম মুশফিকুর রহমান তাহা প্রমুখ উপস্থিত ছিলেন। এছাড়াও বঙ্গবন্ধুর জীবনভিত্তিক স্থিরচিত্র প্রদর্শনী, চিত্রাংকন প্রতিযোগিতা, সাংস্কৃতিক অনুষ্ঠিান, বর্ণিল আতশবাজি প্রদর্শন অনুষ্ঠিত হয়।

খোকসায় অর্থ মন্ত্রনালয়ের আয়োজনে মুজিববর্ষ উদযাপন ক্ষণগণনা কার্যক্রম বাস্তবায়নে দিনব্যাপী নানা আয়োজনে পালন

খোকসা প্রতিনিধি ॥ কুষ্টিয়ার খোকসায় উপজেলা প্রশাসনের উদ্যোগে অর্থনৈতিক সম্পর্ক বিভাগ অর্থ মন্ত্রনালয়ের আয়োজনে “সময় এখন আমাদের, সময় এখন বাংলাদেশের” এ শ্লোগানকে সামনে রেখে মুজিববর্ষ উদযাপন ক্ষণগননা কার্যক্রম বাস্তবায়নের লক্ষ্যে বর্ণাঢ্য র‌্যালী, আলোচনা সভা, চিত্রাঙ্গন প্রতিযোগিতা, সাংস্কৃতিক অনুষ্ঠান, রাতে বর্ণিল আতশবাজির মধ্যদিয়ে পালিত হয়। শনিবার সকালে উপজেলা নির্বহী অফিসার মৌসুমী জেরিন কান্তার নেতেত্বে এক বর্ণাঢ্য র‌্যালী উপজেলা চত্বর থেকে শুরু হয়ে শহর ঘুরে খোকসা জানিপুর সরকারী মাধ্যকি বিদ্যালয় মাঠে এসে শেষ হয়। বেলা ১১টায় আলোচনা সভায় প্রধান অতিথি ছিলেন কুষ্টিয়া জেলা আওয়ামীলীগের সভাপতি ও উপজেলা চেয়ারম্যান আলহাজ্ব সদর উদ্দিন খান। অনুষ্ঠিত সভাপতিত্ব করেন উপজেলা নির্বাহী অফিসার মৌসুমী জেরিন কান্তা। সভায় বক্তব্য রাখেন পৌর মেয়র ও উপজেলা আওয়ামীলীগের সাধারণ সম্পাদক প্রভাষক তারিকুল ইসলাম, উপজেলা ভাইস চেয়ারম্যান সেলিম রেজা, উপজেলা কৃষি অফিসার সবুজ কুমার সাহা, উপজেলা মৎস্য কর্মকর্তা রাসেদ হাসান, মাধ্যমিক শিক্ষা অফিসার নাজমুল হক, খোকসা জানিপুর সরকারী মাধ্যমিক বিদ্যালয়ের প্রধান শিক্ষক মুহম্মদ আলী, শোমসপুর মাধ্যমিক বিদ্যালয়ের প্রধান শিক্ষক আয়েন উদ্দিন। এ সময় উপস্থিত ছিলেন যুব উন্নয়ন কর্মকর্তা বদিউজ্জামান, সমবায় অফিসার সাঈদ হোসেন, উপজেলা সমাজসেবা কর্মকর্ত সাম্মি আক্তার যুথি, উপজেলা শিক্ষা অফিসার মির্জা গোলাম মুহম্মদ বেগ, কমিউনিটি পুলিশের সভাপতি আরিফুল আলম তশর, খোকসা প্রেসক্লাবের সাধারন সম্পাদক শেখ সাইদুল ইসলাম প্রবীন প্রমখ। দুপুরে খোকসা জানিপর সরকারী মাধ্যমিক বিদ্যালয়ে ছাত্রছাত্রীদের মাঝে চিত্রাঙ্গন, বিকেলে স্থাণীয় শিল্পীদের আয়োজনে সাংস্কৃতিক অনুষ্ঠানের আয়োজন করা হয়। এরপর বাংলাদেশে সকল উপজেলা এবং কেন্দ্রীয়ভাবে উৎসব পালন ও বর্ণিল আতশবাজি কেন্দ্রীয় অনুষ্ঠান হাতিরঝিল এমফিথিয়েটার থেকে সবাসরি বড় পর্দায় দেখানো হয়। এ সময় বিভিন্ন দপ্তরের কর্মকর্তা, বিভিন্ন ইউনিয়নের চেয়ারম্যান, শিক্ষা প্রতিষ্ঠানের প্রধান, সাংবাদিক, বিভিন্ন সংগঠসের প্রতিনিধি, সুধী, উপজেলা আওয়ামীলীগ ও অঙ্গসংগঠন এর নেতা কর্মী, স্কুল কলেজের ছাত্রছাত্রী উপস্থিত ছিলেন।

পোড়াদহে প্রতিবন্ধী শিশু ছাত্র-ছাত্রীদের মাঝে সাফ’র কম্বল বিতরণ

শীত সুস্থদের তুলনায় অসুস্থ্যদের জন্য বেশ কষ্টকর, তা যদি আবার প্রতিবন্ধী হয় তাদের জন্য আরও কষ্টকর। যদিও শীতকাল অনেকের কাছে প্রিয়। যার জন্য বলা হয়ে থাকে কাহারও জন্য  পৌষমাস কাহারও জন্য সর্বনাশ। যে প্রতিবন্ধীদের লেখাপড়ার শেখানোর দায়িত্ব নিয়ে কুষ্টিয়ার মিরপুর উপজেলার পোড়াদহ ইউনিয়নের বালিয়াশিশা গ্রামে গড়ে উঠেছে বনলতা প্রতিবন্ধী স্কুল। গতকাল সকালে প্রতিবন্ধী শিশুদের শীত লাঘবের সামান্য প্রয়াস হিসাবে সাফ‘র আয়োজনে কম্বল বিতরণ করা হয়। শতাধিক প্রতিবন্ধী ছাত্র-ছাত্রীদের মধ্য থেকে চল্লিশজনকে কম্বল প্রদান করা হয়। বনলতা প্রতিবন্ধী স্কুলের প্রতিষ্ঠাতা শুকজান খাতুন সুমির পরিচালনায় প্রধান অতিথি হিসাবে বক্তব্য রাখেন সাফ‘র নির্বাহী পরিচালক মীর আব্দুর রাজ্জাক। বিশেষ অতিথি হিসাবে বক্তব্য রাখেন পোড়াদহ ইউপি‘র মহিলা সদস্য রুপালী খাতুন। প্রধান অতিথি বলেন- প্রতিবন্ধী এই শিশুদের প্রত্যেককে সোয়েটার, ফুলপ্যাণ্ট ও জুতামুজা দেওয়া দরকার। আমরা সমাজের বিত্তবানদের অনুরোধ করবো প্রতিবন্ধী শিশুদের চিকিৎসা ও উপকরণ সহযোগিতা নিয়ে এগিয়ে আসার জন্য। এসময় সাফ‘র স্বেচ্ছাসেবক হিসাবে উপস্থিত ছিলেন লাকি খাতুন ও জাহিদা। আরও উপস্থিত ছিলেন শিক্ষক নিলুফা ইয়াসমিন, রাজিয়া সুলতানা, জান্নাতুল খাতুন, আজমিরা, কুসুম খাতুন, আরিফা খাতুন, রুমা খাতুন, সুমি খাতুন, অনিতা। সংবাদ বিজ্ঞপ্তি

কুষ্টিয়ায় র‌্যাবের অভিযানে ইয়াবাসহ একজন গ্রেফতার

নিজ সংবাদ ॥ র‌্যাব-১২, সিপিসি-১, কুষ্টিয়া ক্যাম্পের র‌্যাবের একটি অভিযানিক দল গতকাল শনিবার বিকেল ৩টার সময় কুষ্টিয়ার দৌলতপুর থানাধীন চরমাদিপুর গ্রামস্থ হাসেম মন্ডলের বাড়ীর দক্ষিণ পাশের্^ ব্লক মাঠ হতে এক মাদক অভিযান পরিচালনা করে। উক্ত অভিযানে ২০ পিচ ইয়াবা ট্যাবলেট, ১টি মোবাইল ফোন, ২টি সিমকার্ড সহ মোঃ হানিফ খাঁ (৩৮) নামের এক ব্যক্তিকে গ্রেফতার করে। গ্রেফতারকৃত হানিফ খাঁ দৌলতপুর উপজেলার চরসাদিপুর পশ্চিমপাড়ার মোঃ হাবিল খাঁর ছেলে। পরর্বতীতে উদ্ধারকৃত আলামতসহ ধৃত আসামীর বিরুদ্ধে দৌলতপুর থানায় একটি মাদক মামলা দায়ের করা হয়েছে এবং গ্রেফতারকৃত আসামীকে দৌলতপুর থানায় সোপর্দ করা হয়েছে।

কৃষকের ৭টি গরু-মহিষ লুট

দৌলতপুরে পদ্মার চরে সন্ত্রাসী হামলায় আহত-৪ 

দৌলতপুর প্রতিনিধি ॥ কুষ্টিয়ার দৌলতপুরে পদ্মার চরে সন্ত্রাসী হামলায় অন্তত ৪জন আহত হয়েছে। সন্ত্রাসীরা কৃষকের ৭টি গরু-মহিষ লুট করেছে। শুক্রবার রাত ১০টার দিকে উপজেলার মরিচা ইউপি’র বৈরাগীর চরের নিচে পদ্মার চরে সন্ত্রাসী হামলা ও গবাদি পশু লুটের ঘটনা ঘটেছে। সন্ত্রাসী হামলায় আহতদের দৌলতপুর হাসপাতালে ভর্তি করা হয়েছে। হামলা শিকার ও লুট হওয়া গবাদি পশুর মালিকদের অভিযোগ সুত্রে জানা গেছে, ভেড়ামারা উপজেলার খেমিরদিয়াড় ইউনিয়নের ফকিরাবাদ গ্রামের হত্যা মামলায় সাজাপ্রাপ্ত পালাতক আসামী নজরুল ইসলামের সন্ত্রাসী ছেলে নয়ন এর নেতৃত্বে আলম (৩৪) ও জহুরুল (২৯).সহ ১০-১২ জন সশস্ত্র সন্ত্রাসী পদ্মার চরে রিপন ও নিহারুলের গরুর বাথানে হামলা চালয়। এসময় সন্ত্রাসীরা গরুর বাথানের রিপনের ৫টি গরু-মহিষ ও নিহারুলের ২টি গরু লুট করে নিয়ে যাওয়ার সময় নিহারুলের ছেলে মামুন (২৫) সন্ত্রাসীদের বাধা দেওয়ার চেষ্টা করলে তাকে রামদা দিয়ে কুপিয়ে জখম করা হয়। সন্ত্রাসী হামলার চিৎকার শুনে ঘটনাস্থলে ছুটে আসা মাঠে থাকা ইলিয়াস হোসেন (৩৮) সহ আরও ২জনকে কুপিয়ে জখম করে সন্ত্রাসীরা লুট করা গরু-মহিষ নিয়ে নির্বিগ্নে চলে যায়। পরে গতকাল বিকেলে লুট হওয়া একজোড়া মহিষ উদ্ধার করতে পারলেও লুট বাঁকী ৫টি গরু উদ্ধার করতে পারেনি। এ ঘটনায় লুট হওয়া গরুর মালিক নিহারুল বাদী হয়ে দৌলতপুর থানায় অভিযোগ দায়ের হয়েছে।

কুষ্টিয়া পৌরসভায় আয়োজনে জাতীয় ভিটামিন “এ” প্লাস ক্যাম্পেইন উদ্বোধন করলেন মেয়র আনোয়ার আলী

ভিটামিন ‘এ” খাওয়ান, শিশুমৃত্যুর ঝুঁকি কমান। এই শ্লোগানকে সামনে রেখে গতকাল শনিবার সকালে জাতীয় ভিটামিন “এ” প্লাস ক্যাম্পেইন’র উদ্বোধন করলেন কুষ্টিয়া পৌরসভা উন্নয়নের রূপকার ও জননন্দিত মেয়র আনোয়ার আলী। এবিষয়ে পৌর মেয়র আনোয়ার আলী বলেন, জাতীয় পুষ্টি সেবা ও জনস্বাস্থ্য পুষ্ঠি প্রতিষ্ঠান স্বাস্থ্য অধিদপ্তর, স্বাস্থ্য ও পরিবার কল্যান মন্ত্রণালয়ের সহযোগিতায় প্রতিবছরের ন্যায় ১১ জানুয়ারি ১ম বারের মত  ৬-১১ মাস বয়সী সকল শিশুকে ১টি করে নীল রঙ্গের ভিটামিন “এ” ক্যাপসুল এবং ১২-৫৯ বয়সী সকল শিশুকে ১টি করে লাল রঙ্গের ভিটামিন “এ” ক্যাপসুল খাওয়ানো হচ্ছে। তিনি আরোও বলেন, এই ক্যাপসুল অপুষ্টিজনিত অন্ধত্ব থেকে শিশুদের রক্ষা করে। এছাড়াও শিশুর রোগ প্রতিরোধ ক্ষমতা বৃদ্ধি করে। ডায়রিয়ার ব্যাপ্তিকাল ও জটিলতা কমায় এবং শিশুর মৃত্যুর ঝুঁকি কমায়। বাংলাদেশে ভিটামিন “এ” এর অভাবজনিত সমস্যা প্রতিরোধে স্বাস্থ্য ও পরিবার কল্যান মন্ত্রণালয়ের অধীনে জাতীয় পুষ্টি সেবা, জনস্বাস্থ্য পুষ্টি প্রতিষ্ঠান সহযোগীতায় বছরে দুইবার জাতীয় ভিটামিন “এ” প্লাস খাওয়ানো হয়। তিনি আরোও বলেন, পৌর এলাকায় মোট ৯০ টি ভ্রাম্যমান কেন্দ্রে দুইজন করে স্বেচ্ছাসেবক কাজ করছে। সকাল ৮ ঘটিকা হতে বিকাল ৪ ঘটিকা পর্যন্ত এই কার্য়ক্রম চলবে। ৬-১১ মাস বয়সী ১৭৭২ জন শিশু ও ১২-৫৯ মাস বয়সী ১১,৯৭৪ জন শিশু সর্বমোট ১৩,৯৪৬ জন শিশুকে ভিটামিন“এ” প্লাস ক্যাপসুল খাওয়ানো হবে। এসময়  উপস্থিত ছিলেন স্যানেটারী ইন্সপেক্টর আব্দুর রহিম, টিকাদানকারী সুপারভাইজার গাজীউর রহমানসহ পৌরসভার কর্মকর্তা-কর্মচারীবৃন্দ। সংবাদ বিজ্ঞপ্তি

দৌলতপুরে মুজিববর্ষ উপলক্ষ্যে র‌্যালি ও আলোচনা সভা

দৌলতপুর প্রতিনিধি ॥ সর্বকালের সর্বশ্রেষ্ঠ বাঙ্গালী স্বাধীনতার মহান স্থপতি জাতির পিতা বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমান-এঁর জন্ম শতবার্ষিকী উদযাপনের লক্ষ্যে কুষ্টিয়ার দৌলতপুরে মুজিববর্ষ-২০২০ উপলক্ষ্যে র‌্যালি ও আলোচনা সভা অনুষ্ঠিত হয়েছে। দৌলতপুর উপজেলা প্রশাসনের সহযোগিতায় গতকাল শনিবার বেলা ১১টায় একটি বর্নাঢ্য র‌্যালি বের করা হয়। দৌলতপুর উপজেলা চেয়ারম্যান এ্যাড. এজাজ আহমেদ মামুন ও দৌলতপুর উপজেলা নির্বাহী অফিসার শারমিন আক্তারের নেতৃত্বে র‌্যালিতে ভাইস চেয়ারম্যানদ্বয়, উপজেলা প্রশাসনের বিভিন্ন দপ্তরের কর্মকর্তা, মুক্তিযোদ্ধাগণ ও বিভিন্ন শ্রেনী পেশার মানুষ অংশ নেয়। র‌্যালিটি উপজেলা পরিষদ চত্বর থেকে শুরু হয়ে সেন্টার মোড় ঘুরে উপজেলা পরিষদ চত্বরে গিয়ে শেষ হয়। পরে উপজেলা পরিষদ মিলনায়তনে ‘বঙ্গবন্ধুর উন্নয়ন দর্শন’ শীর্ষক আলোচনা সভা অনুষ্ঠিত হয়। দৌলতপুর উপজেলা নির্বাহী অফিসার শারমিন আক্তারের সভাপতিত্বে আলোচনা সভায় অংশ নেন দৌলতপুর সহকারী কমিশনার (ভূমি) মো. আজগর আলী, দৌলতপুর কৃষি অফিসার একেএম কামরুজ্জামান, মুক্তিযোদ্ধা হায়দার আলী, আব্দুস সোবহান, আব্দুস সাত্তার ও প্রভাষক শরীফুল ইসলাম। আলোচনা সভা পরিচালনা করেন দৌলতপুর প্রকল্প বাস্তবায়ন কর্মকর্তা সাইদুর রহমান। বিকেলে উপজেলা পরিষদ চত্বরে মুক্তমঞ্চে অনুষ্ঠিত হয় দৌলতপুর শিল্পকলা একাডেমির পরিবেশনায় অনুষ্ঠিত হয় মনোজ্ঞ সাংস্কৃতিক অনুষ্ঠান।

ইবি ভিসির শোক

ইসলামী বিশ্ববিদ্যালয়ের ভাইস-চ্যান্সেলর প্রফেসর ড. মোঃ হারুন-উর-রশিদ আসকারী (ড. রাশিদ আসকারী) এক শোকবার্তায়, ইসলামী বিশ্ববিদ্যালয়ের আইসিটি বিভাগের সাবেক সহযোগী অধ্যাপক ড. মোঃ তারেকুজ্জামানের পিতা তাইজাল আলী বিশ্বাসের মৃত্যুতে গভীর শোক ও দুঃখ প্রকাশ করেছেন। প্রেরিত শোক বার্তায় তিনি, মরহুমের আত্মার মাগফিরাত কামনা করেন এবং শোকসন্তপ্ত পরিবারের প্রতি সমবেদনা জ্ঞাপন করেন। অপর শোকবার্তায়, ইসলামী বিশ্ববিদ্যালয়ের আইসিটি বিভাগের সাবেক সহযোগী অধ্যাপক ড. মোঃ তারেকুজ্জামানের পিতা তাইজাল আলী বিশ্বাসের মৃত্যুতে গভীর শোক ও দুঃখ প্রকাশ করেছেন প্রো-ভাইস চ্যান্সেলর প্রফেসর ড. মোঃ শাহিনুর রহমান এবং ট্রেজারার প্রফেসর ড. মোঃ সেলিম তোহা। শোকবার্তায় তাঁরা, মরহুমের  আত্মার মাগফিরাত কামনা করেন এবং শোকাহত পরিবারের প্রতি সমবেদনা জ্ঞাপন করেন। সংবাদ বিজ্ঞপ্তি

ভেড়ামারায় ২৩ হাজার শিশুকে খাওয়ানো হলো ভিটামিন ‘এ’ ক্যাপসুল

আল-মাহাদী ॥ কুষ্টিয়ার ভেড়ামারায় ২২ হাজার ৮’শ ২০ শিশু খাওয়ানো হলো ভিটামিন ‘এ’ ক্যাপসুল। জাতীয় ভিটামিন এ প্লাস ক্যাম্পেইন’২০ এর আওতায় ভেড়ামারা উপজেলায় ১৭০টি কেন্দ্র’র মাধ্যমে এ কার্যক্রম পরিচালিত হয়। গতকাল শনিবার সকাল ৯টায় আনুষ্ঠানিক ভাবে এ কার্যক্রমের শুভ উদ্বোধন করেন, ভেড়ামারা উপজেলা স্বাস্থ্য ও পরিবার পরিকল্পনা কর্মকর্তা ডাঃ নুরুল আমীন। এসময় উপস্থিত ছিলেন- ভেড়ামারা উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে’র আবাসিক মেডিক্যাল অফিসার ডাঃ আসাদুজ্জামান, ডাঃ রাকিব আল ইমরান, ডাঃ সৌরভ কুমার কুন্ডু, ডাঃ পলাশ চন্দ্র দেবনাথ, ডাঃ রাহুল পারভেজ, ডাঃ শুভাশিষ শাহা, ডাঃ রুবেল আহমেদ, ডাঃ মোমিনুল ইসলাম, আমিনুল ইসলাম মুকুল, সেবিকা রিজিয়া পারভেজ, এমটিইপিআই আতিয়ার রহমান প্রমুখ। ভেড়ামারা উপজেলা স্বাস্থ্য ও পরিবার পরিকল্পনা কর্মকর্তা ডাঃ নুরুল আমীন জানিয়েছেন, শিশুদের রোগ প্রতিরোধ ক্ষমতা বাড়াতে ভিটামিন ‘এ’ ক্যাপসুল খুবই গুরুত্বপূর্ন। ভিটামিন এ ক্যাপসুলের কারনে শিশুরা রাতকানা রোগ থেকে রক্ষা পায়। ডায়রিয়া, আমাশয়, কলেরা ও নিউমোনিয়াসহ অন্যান্য রোগ প্রতিরোধ ক্ষমতাও বাড়ে। তিনি জানান, ভেড়ামারা উপজেলায় ৬-১১ মাস বয়সী শিশুকে একটি নীল রং এর এবং ১২ থেকে ৫৯ বছর বয়সী শিশুদেরকে লাল রং এর ভিটামিন ‘এ’ ক্যাপসুল খাওয়ানো হয়েছে।

ইবি ভিসিকে চবি শিক্ষকের বই উপহার

ইসলামী বিশ্ববিদ্যালয়ের আল-কুরআন এন্ড ইসলামিক স্টাডিজ বিভাগের মাস্টার্স ১৯৯৯ এর কৃতি ছাত্র বর্তমানে চট্রগ্রাম বিশ্ববিদ্যালয়ের ইসলামিক স্টাডিজ বিভাগের সহযোগী অধ্যাপক ড. মুহাম্মদ নূরুল আমিন নূরী তাঁর নিজের লেখা “তাফসীর ও ফিকহ শাস্ত্রের গবেষণায় হযরত আয়েশা (রা:) এর পদ্ধতি” গ্রন্থটি  ইসলামী বিশ্ববিদ্যালয়ের ভাইস চ্যান্সেলর প্রফেসর ড. মোঃ হারুন-উর-রশিদ আসকারীকে উপহার দেন। গতকাল দুপুরে ভাইস চ্যান্সেলরের অফিস কক্ষে এ গ্রন্থটি উপহার প্রদানকালে উপস্থিত ছিলেন ইবির প্রফেসর ড. আ ব ম সাইফুল ইসলাম সিদ্দিকী।  ১৭’শ পৃষ্টা সম্বলিত দু’খন্ডের আরবী  গ্রন্থটি বৈরূত-লেবাননের দারু তাওকিন নাজাত হতে প্রকাশিত হয়। উল্লেখ্য ড. নূরী ইবি হতে প্রফেসর ড. আ ব ম সাইফুল ইসলাম সিদ্দিকী’র অধীনে “তাফসীর ও ফিকহ শাস্ত্রের গবেষণায় হযরত আয়েশা (রা:) এর পদ্ধতি” শিরোনামে পিএইডি ডিগ্রী লাভ করেন। এছাড়াও তিনি ১৯৯৯ সালে অনুষদীয় সেরা ছাত্র হিসেবে ২০১৮ সালে অনুষ্ঠিত ৪র্থ সমাবর্তনে স্বর্ণ পদক গ্রহণ করেন। সংবাদ বিজ্ঞপ্তি

আলমডাঙ্গায় অর্থনৈতিক সম্পর্ক বিভাগের মাধ্যমে শেখ মুজিবুর রহমানের জন্মশত বার্ষিকী উদযাপন উপলক্ষে র‌্যালি, আলোচনা সভা

আলমডাঙ্গা অফিস ॥ ‘সময় এখন আমাদের, সময় এখন বাংলাদেশের’ এই প্রতিপাদ্যককে সামনে রেখে বাংলাদেশ অর্থ মন্ত্রণালয়ের উদ্যোগে অর্থনৈতিক সম্পর্ক বিভাগের মাধ্যমে একযোগে বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের জন্মশত বার্ষিকী উদযাপন উপলক্ষে র‌্যালি, আলোচনা সভা ও আতশবাঁজির মাধ্যমে পালন করা হয়েছে। গতকাল শনিবার সকাল ১১ টায় উপজেলা পরিষদ চত্বর হতে র‌্যালি বের হয়ে শহর প্রদক্ষিণ শেষে আবারো একই স্থানে উপস্থিত হয়ে আলোচনা সভা অনুষ্ঠিত হয়। এসময় উপজেলা প্রশাসনের উদ্যোগে আলোচনা সভায় আলমডাঙ্গা উপজেলা সমাজসেবা অফিসার আফাজ উদ্দীনের উপস্থাপনায় ও উপজেলা নির্বাহী অফিসার লিটন আলীর সভাপতিত্বে প্রধান অতিথি ছিলেন আলমডাঙ্গা উপজেলা পরিষদের চেয়ারম্যান আয়ুব হোসেন, উপজেলা সহকারী কমিশনার (ভূমি) সিমা শারমিন, উপজেলা পরিষদের ভাইস-চেয়ারম্যান সালমুন আহমেদ ডন, মহিলা ভাইস-চেয়ারম্যান কাজী মারজাহান নিতু, আলমডাঙ্গা উপজেলা কৃষি কর্মকর্তা মোহাম্মদ আলী জিন্নাহ, আলমডাঙ্গা থানার অফিসার ইনচার্জ সৈয়দ আশিকুর রহমান, উপজেলা মহিলা বিষয়ক কর্মকর্তা মাকসুরা জান্নাত, উপজেলা পল¬ী উন্নয়ন কর্মকর্তা সাইলা শারমিন, উপজেলা মহিলা তথ্য আপা স্নিগ্ধা দাস, অগ্নি সেনা বীর মুক্তিযোদ্ধা মইনুদ্দিন,  আলমডাঙ্গা সরকারী কলেজের অধ্যক্ষ গোলাম সরোয়ার মিঠু, উপজেলা প্রকৌশলী আ. রশিদ প্রমুখ।

আলমডাঙ্গা পৌরসভায় ভিটামিন এ+ ক্যাম্পেইন উদ্বোধন

আলমডাঙ্গা অফিস ॥ আলমডাঙ্গা পৌরসভার উদ্যোগে জাতীয় ভিটামিন এ+ক্যাম্পেইন-২০২০ অনুষ্ঠিত হয়েছে। গতকাল শনিবার সকাল ১০ঘটিকায় পৌর চত্বরে আনুষ্ঠানিকভাবে ক্যাম্পেইন উদ্বোধন করেন পৌর মেয়র হাসান কাদির গনু। এসময় উপস্থিত ছিলেন পৌরসভার প্যানেল মেয়র-১ সদর উদ্দিন ভোলা, প্যানেল মেয়র-২ জহুরুল ইসলাম স্বপন, কাউন্সিলর আলাল উদ্দিন, কাজী আলী আজগর সাচ্চু, আব্দুল গাফ্ফার, মতিয়ার রহমান ফারুক, ফারুক হোসেন, জাহিদুল ইসলাম ও মামুন অর রশিদ হাসান, মহিলা কাউন্সিলর কল্পনা খাতুন, সামসাদ রানু, নূরজাহান খাতুনসহ এলাকার গণ্যমান্য ব্যক্তিবর্গ ও পৌর কর্মচারী আশরাফ আলী, টিকা পরিদর্শক বিল¬াল হোসেন, মুস্তাফিজুর রহমান, মাহফুজুর রানাসহ স্বাস্থ্য শাখার কর্মচারী ও পৌরসভার অন্যান্য কর্মচারীবৃন্দ। আলমডাঙ্গা পৌরসভার ২৪টি স্থায়ী টিকা কেন্দ্রে, ৫টি ভ্রাম্যমান কেন্দ্র ও ১১টি অতিরিক্ত কেন্দ্রের ৩টি মোবাইল টিমে ১৩০জন স্বেচ্ছাসেবক পৌরসভার সকল কর্মচারীর মাধ্যমে ৬ থেকে ১১ মাস বয়সী শিশু ৭৫৫ জন ও ১  থেকে ৫ বছর বয়সী ৭০৪৪ জন শিশুর লক্ষ্যমাত্রায় ভিটামিন এ ক্যাপসুল খাওয়ানো হয়। ক্যাম্পেইন পরিচালনায় পৌরসভার সকল কর্মকর্তা-কর্মচারীগণ সার্বিকভাবে সহযোগিতায় ছিলেন।

কুমারখালীতে ঐতিহাসিক স্বদেশ প্রত্যাবর্তন দিবস উদযাপন

কুমারখালী প্রতিনিধি ॥ কুষ্টিয়ার কুমারখালীতে বর্ণাঢ্য আয়োজনে সর্বকালের সর্বশ্রেষ্ঠ বাঙালি, স্বাধীনতার মহান স্থপতি জাতির পিতা বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের ঐতিহাসিক স্বদেশ প্রত্যাবর্তন দিবস উদযাপন করা হয়েছে। এ উপলক্ষ্যে গতকাল শনিবার সকাল ১০টায় উপজেলা প্রশাসনের উদ্যোগে উপজেলা পরিষদ চত্বর থেকে বর্ণাঢ্য শোভাযাত্রা বের করা হয়। এতে নেতৃত্ব দেন উপজেলা নির্বাহী অফিসার রাজীবুল ইসলাম খান। শোভাযাত্রাটি শহর প্রদক্ষিণ শেষে আবুল হোসেন তরুণ অডিটোরিয়াম মিলনায়তন চত্বরের উন্মুক্ত মঞ্চে এসে সমবেত হয়। বেলা সাড়ে ১১টায় অর্থ মন্ত্রণালয়ের অর্থনৈতিক সম্পর্ক বিভাগের উদ্যোগে “বঙ্গবন্ধু’র উন্নয়ন দর্শন” শীর্ষক আলোচনা সভা অনুষ্ঠিত হয়। এতে সভাপতিত্ব করেন উপজেলা নির্বাহী অফিসার রাজীবুল ইসলাম খান। অন্যান্যের মধ্যে বক্তব্য রাখেন, সহকারি কমিশনার (ভুমি) এম, এ মুহাইমিন আল জিহান, কুমারখালী সরকারি কলেজের অধ্যক্ষ মো. শরীফ হোসেন, বীর মুক্তিযোদ্ধা এটিএম আবুল মনছুর মজনু, উপজেলা পরিষদের মহিলা ভাইস চেয়ারম্যান  মোছা: মেরিনা পারভীন মিনা প্রমূখ। আলোচনা অনুষ্ঠান শেষে অতিথিদের সাথে নিয়ে উন্মুক্ত মঞ্চ চত্বরে জাতির পিতা বঙ্গবন্ধু’র জীবন ভিত্তিক স্থির চিত্র প্রদর্শনী কার্যক্রম পরিদর্শন করেন ইউএনও রাজীবুল ইসলাম খান। ঐতিহাসিক স্বদেশ প্রত্যাবর্তন দিবস উপলক্ষ্যে “বঙ্গবন্ধু ও বাংলাদেশ” শীর্ষক চিত্রাঙ্কন প্রতিযোগীতা সহ মনোজ্ঞ সাংস্কৃতিক অনুষ্ঠান ও বর্ণিল আতশবাজি প্রদর্শনের আয়োজন করা হয়েছে। জাতির পিতা বঙ্গবন্ধু’র ঐতিহাসিক স্বদেশ প্রত্যাবর্তন দিবস উপলক্ষ্যে উপজেলা প্রশাসনের সকল আয়োজনে সরকারি দপ্তরের কর্মকর্তা- কর্মচারী, শিক্ষা প্রতিষ্ঠানের শিক্ষক-শিক্ষিকা ও গণমাধ্যমকর্মীরা স্বত:স্ফুর্ত অংশগ্রহণ করেন।

কালুখালীতে বঙ্গবন্ধুর স্বদেশ প্রত্যাবর্তন দিবস উদযাপনে র‌্যালী আলোচনা ও স্থিরচিত্র প্রদর্শন

কালুখালী প্রতিনিধি ॥ রাজবাড়ী জেলাধীন কালুখালীতে গতকাল শনিবার জাতির জনক বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমান এর স্বদেশ প্রত্যাবর্তন দিবস উদযাপনে র‌্যালী, আলোচনা সভা, চিত্রাঙ্কন ও স্থিরচিত্র প্রদর্শন অনুষ্ঠিত হয়েছে। এ উপলক্ষ্যে সকাল ১০টায় উপজেলা প্রশাসনের আয়োজনে ও অর্থ মন্ত্রণালয়ের সহযোগীতায় বিশাল একটি র‌্যালী বের করা হয়। র‌্যালীটি উপজেলা শহরের আশপাশ রাস্তা প্রদক্ষিণ করে রতনদিয়া রজনীকান্ত সরকারী মডেল উচ্চ বিদ্যালয় মাঠে এসে সমাপ্ত করে। এসময় এক আলোচনায় উপজেলা নির্বাহী অফিসার শেখ নুরুল আলমের সভাপতিত্বে প্রধান অতিথি হিসেবে বক্তব্য রাখেন উপজেলা পরিষদ চেয়ারম্যান আলিউজ্জামান চৌধুরী (টিটো)। তিনি তার বক্তব্যে বঙ্গবন্ধুর স্বদেশ প্রত্যাবর্তন দিবসের তাৎপর্য তুলে ধরে বলেন বঙ্গবন্ধুর স্বপ্নের সোনার বাংলাদেশ বাস্তবায়নে তার সুযোগ্য কন্যা বর্তমান সরকারের প্রধানমন্ত্রী জননেত্রী শেখ হাসিনার হাত ধরে এগিয়ে যাচ্ছে। সহকারী প্রধান শিক্ষক মোঃ হাফিজুর রহমান এর সঞ্চালণায় বিশেষ অতিথি হিসেবে বক্তব্য রাখেন কালুখালী থানার ইন্সপেক্টর (তদন্ত) মোঃ সহিদুল ইসলাম, উপজেলা আওয়ামীলীগের সাধারণ সম্পাদক খায়রুল ইসলাম খায়ের এছাড়াও উপজেলা প্রকৌশলী মোহাম্মদ তৌহিদুল হক জোয়াদ্দার, কৃষি অফিসার মো. মাছিদুর রহমান, রতনদিয়া রজনীকান্ত সরকারী মডেল উচ্চ বিদ্যালয়ের প্রধান শিক্ষক মোঃ আয়ুব আলী, কৃষি সম্প্রসারণ কর্মকর্তা সুজিত কুমার নন্দী, উপজেলা মহিলা আওয়ামীলীগের সাধারণ সম্পাদক ফাতেমা খাতুনসহ অন্যান্যরা উপস্থিত ছিলেন। আলোচনা শেষে প্রধান অতিথিসহ অন্যান্য অতিথিরা বঙ্গবন্ধুর স্থিরচিত্র প্রদর্শন পরিদর্শন করেন।

কুষ্টিয়া প্রেসক্লাবের উদ্যোগে শীতবস্ত্র বিতরণ

মানুষ সাবলম্বী হচ্ছে, ভবিষ্যতে দেশে কোন দুঃস্থ থাকবে না ঃ ডিসি, একটা সময় আসবে শীতবস্ত্র নেয়ার মানুষ থাকবে না ঃ এসপি

নিজ সংবাদ ॥ অসহায় শীতার্ত মানুষের মাঝে শীতবস্ত্র বিতরণ করেছে কুষ্টিয়া প্রেসক্লাব। গতকাল ১১ জানুয়ারি শনিবার সকালে প্রেসক্লাবের উদ্যোগে প্রায় দুই শতাধিক অসহায় শীতার্ত মানুষের মাঝে কম্বল বিতরণ করা হয়। কুষ্টিয়া প্রেসক্লাব চত্বরে এ শীতবস্ত্র বিতরণ অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথি ছিলেন কুষ্টিয়ার জেলা প্রশাসক মোঃ আসলাম হোসেন। বিশেষ অতিথি ছিলেন পুলিশ সুপার এসএম তানভীর আরাফাত পিপিএম (বার)। শীতবস্ত্র বিতরণ উপলক্ষ্যে আয়োজিত এক সংক্ষিপ্ত আলোচনা সভায় সভাপতিত্ব করেন কুষ্টিয়া প্রেসক্লাবের সভাপতি গাজী মাহবুব রহমান (সম্পাদক দৈনিক আজকের আলো)। অনুষ্ঠানে স্বাগত বক্তব্য রাখেন কুষ্টিয়া প্রেসক্লাব’র সাধারণ সম্পাদক আনিসুজ্জামান ডাবলু (সম্পাদক দৈনিক আন্দোলনের বাজার ও জেলা প্রতিনিধি চ্যানেল আই)।

প্রধান অতিথির বক্তব্যে কুষ্টিয়ার জেলা প্রশাসক মোঃ আসলাম হোসেন বলেন- বর্তমান সরকার দেশ ব্যাপক উন্নয়ন করে চলেছে। মানুষের আয় বেড়েছে। মানুষ এখন সাবলম্বী হচ্ছে। ভবিষ্যতে আর দেশে কোন দুঃস্থ থাকবে না। বিশেষ অতিথির বক্তব্যে পুলিশ সুপার এস এম তানভীর আরাফাত পিপিএম (বার) বলেন, মানুষের জীবনযাত্রার মান অনেক উন্নত হয়েছে। আগামীতে আরো উন্নত হবে। একটা সময় আসবে যখন শীতবস্ত্র নেয়ার আর কোন মানুষ থাকবে না।

এ সময় উপস্থিত ছিলেন, কুষ্টিয়া প্রেসক্লাবের সহ-সভাপতি তারিকুল হক তারিক (জেলা প্রতিনিধি কালের কণ্ঠ), সহ-সভাপতি লুৎফর রহমান কুমার (সম্পাদক দৈনিক মাটির ডাক), যুগ্ম-সাধারণ সম্পাদক নুরুন্নবী বাবু (ভারপ্রাপ্ত সম্পাদক দৈনিক সময়ের কাগজ), যুগ্ম-সাধারণ সম্পাদক শরিফ বিশ্বাস (স্টাফ করেসপনডেন্ট চ্যানেল ২৪ ও সম্পাদক দি টিচার), কোষাধ্যক্ষ আবু মনি জুবায়েদ রিপন (জেলা প্রতিনিধি দৈনিক যুগান্তর ও সম্পাদক দৈনিক কুষ্টিয়ার খবর), দপ্তর সম্পাদক এম. লিটন-উজ-জামান (জেলা প্রতিনিধি বাংলা টিভি), প্রচার প্রকাশনা ও সাংস্কৃতিক সম্পাদক তৌহিদী হাসান (জেলা প্রতিনিধি দৈনিক প্রথম আলো), এডিটরস ফোরামের সভাপতি ও দৈনিক দর্পণ পত্রিকার সম্পাদক মজিবুল শেখ, সমকাল ও ডিবিসি নিউজ চ্যানেল’র জেলা প্রতিনিধি সাজ্জাদ রানা, টেলিভিশন জার্নালিস্ট এ্যাসোসিয়েশনের সাধারণ সম্পাদক ও সময় টেলিভিশন’র জেলা প্রতিনিধি এস এম রাশেদ, দৈনিক দিনের খবর পত্রিকার সম্পাদক ফেরদৌস রিয়াজ জিল্লু, দৈনিক আলোকিত বাংলাদেশ পত্রিকার জেলা প্রতিনিধি এ এইচ এম আরিফ, কুষ্টিয়া প্রেসক্লাবের ক্রীড়া ও সমাজকল্যাণ সম্পাদক নুরুল কাদের (জেলা প্রতিনিধি দৈনিক নয়া দিগন্ত), নির্বাহী সদস্য মিজানুর রহমান লাকী (জেলা প্রতিনিধি দৈনিক সংবাদ), আক্তার হোসেন ফিরোজ (সম্পাদক দৈনিক আজকের সূত্রপাত), এম.এ জিহাদ (সম্পাদক দৈনিক মাটির পৃথিবী), পি.এম. সিরাজুল ইসলাম (জেলা প্রতিনিধি ডেইলি অবজারভার), ডালিয়া পারভীন শিউলী (প্রতিনিধি দৈনিক বাংলাদেশের খবর), দেবাশীষ দত্ত (জেলা প্রতিনিধি দৈনিক খোলা কাগজ), সুজন কুমার কর্মকার (জেলা প্রতিনিধি দৈনিক সকালের সময় ও সিনিয়র স্টাফ রিপোর্টার দৈনিক আন্দোলনের বাজার), মোকাদ্দেস হোসেন সেলিম (সম্পাদক দৈনিক সূত্রপাত), নিজাম উদ্দিন (জেলা প্রতিনিধি দেশ টেলিভিশন) সহ প্রিন্ট ও ইলেকট্রনিক্স মিডিয়ার সাংবাদিক নেতৃবৃন্দ।