লন্ডনে ফ্ল্যাট, হুদার স্ত্রী ও দুই মেয়ের বিরুদ্ধে মামলা

ঢাকা অফিস ॥ পৌনে সাত কোটি টাকা পাচার করে লন্ডনে দুইটি ফ্ল্যাট কেনার অভিযোগে সাবেক মন্ত্রী নাজমুল হুদার স্ত্রী ও দুই মেয়ের বিরুদ্ধে দুটি মামলা করেছে দুর্নীতি দমন কমিশন (দুদক)। গতকাল বৃহস্পতিবার কমিশনের সমন্বিত জেলা কার্যালয়, ঢাকা-১ এ দুদকের সহকারী পরিচালক মো. শফি উল্লাহ বাদী হয়ে মামলা করেন বলে সংস্থাটির জনসংযোগ কর্মকর্তা প্রণব কুমার ভট্টাচার্য্য জানিয়েছেন। আসামিরা হলেন- নাজমুল হুদার স্ত্রী সিগমা হুদা এবং দুই মেয়ে অন্তরা সেলিমা হুদা ও শ্রাবন্তী আমিনা হুদা। দুই মামলাতেই সিগমা হুদাকে আসামি করা হয়েছে। তাদের বিরুদ্ধে জ্ঞাত আয় বহির্ভূত সম্পদ অর্জন করে প্রায় পৌনে সাত কোটি টাকা পাচারের অভিযোগ আনা হয়েছে মামলায়। সিগমা হুদা ও অন্তরা সেলিমা হুদার বিরুদ্ধে করা মামলায় বলা হয়েছে, তারা জ্ঞাত আয় বহির্ভূত সম্পদ অর্জন করে তিন লাখ ৮০ হাজার পাউন্ড স্টার্লিংয়ের সমপরিমাণ চার কোটি ছয় লাখ ৬০ হাজার টাকা যুক্তরাজ্যে পাচার করেন। সেই অর্থ দিয়ে লন্ডনের ওয়াটার গার্ডেনসের বারউড প্যালেসে তারা ২০০৩ সালের ২৬ জুন একটি ফ্ল্যাট কিনেছেন বলে মামলায় অভিযোগ করা হয়েছে। অন্যদিকে শ্রাবন্তী আমিনা হুদার সঙ্গে সিগমা হুদাকে যে মামলায় আসামি করা হয়েছে, তার এজাহারে বলা হয়েছে, তারা জ্ঞাত আয় বহির্ভূত দুই লাখ ৫০ হাজার পাউন্ড স্টার্লিংয়ের সমপরিমাণ দুই কোটি ৬৭ লাখ ৫০ হাজার টাকার সম্পদ অর্জন করে যুক্তরাজ্যে পাচার করেন। সেই অর্থে তারা ২০০৬ সালের ১২ ডিসেম্বর লন্ডনের হেলনি কোর্টের ডেনহাম রোডে একটি ফ্ল্যাট কিনেছেন বলে মামলায় বলা হয়।

 যুগ্ম-সম্পাদক মাহবুবউল আলম হানিফ সিলেট ও চট্টগ্রাম বিভাগ

আ.লীগে নতুন সাংগঠনিক সম্পাদক, বিভাগীয় দায়িত্ব বণ্টন

ঢাকা অফিস ॥ রাজশাহী বিশ্ববিদ্যালয় শাখা ছাত্রলীগের সাবেক সভাপতি সাখাওয়াত হোসেন শফিককে আওয়ামী লীগের সাংগঠনিক সম্পাদক করা হয়েছে। তার মনোনয়নের সঙ্গে আট সাংগঠনিক বিভাগের সাংগঠনিক দায়িত্ব বণ্টনের কথা গতকাল বৃহস্পতিবার সকালে এক সংবাদ বিজ্ঞপ্তিতে জানানো হয়। দলের দপ্তর সম্পাদক বিপ্লব বড়ুয়া স্বাক্ষরিত বিজ্ঞপ্তিতে বলা হয়, আওয়ামী লীগের জাতীয় কাউন্সিলে দেওয়া ক্ষমতাবলে দলের সভাপতি শেখ হাসিনা সাখাওয়াত হোসেন শফিককে দলের কেন্দ্রীয় কার্যনির্বাহী সংসদের সাংগঠনিক সম্পাদক পদে মনোনয়ন দিয়েছেন। বগুড়া সদরের বাসিন্দা শফিক কেন্দ্রীয় ছাত্রলীগের সহ-সভাপতি হিসেবেও দায়িত্ব পালন করেন। তাকে নিয়ে আট বিভাগে আটজন সাংগঠনিক সম্পাদকের নাম ঘোষণা হলো। একই ক্ষমতাবলে দলের সভাপতি নব-নির্বাচিত যুগ্ম-সাধারণ সম্পাদক ও সাংগঠনিক সম্পাদকদের মধ্যে বিভাগীয় দায়িত্ব বণ্টন করেছেন বলেও জানানো হয়। যুগ্ম-সাধারণ সম্পাদকদের মধ্যে মাহবুবউল আলম হানিফকে সিলেট ও চট্টগ্রাম বিভাগে, দীপু মণিকে ঢাকা ও ময়মনসিংহ বিভাগে, হাছান মাহমুদকে রংপুর ও রাজশাহী বিভাগে এবং আফম বাহাউদ্দিন নাছিমকে খুলনা ও বরিশাল বিভাগের দায়িত্ব দেওয়া হয়েছে। সাংগঠনিক সম্পাদক আহমদ হোসেনকে চট্টগ্রামে, বিএম মোজাম্মেল হককে খুলনায়, আবু সাঈদ আল মাহমুদ স্বপনকে রংপুরে, এসএম কামাল হোসেনকে রাজশাহীতে, মির্জা আজমকে ঢাকায়, আফজাল হোসেনকে বরিশালে, শফিউল আলম চৌধুরী নাদেলকে ময়মনসিংহে ও সাখাওয়াত হোসেন শফিককে সিলেটের বিভাগের দায়িত্ব দেওয়া হয়েছে।

বিশ্ব ইজতেমা শুরু আজ

ঢাকা অফিস ॥ আজ শুক্রবার ফজর নামাজের পর টঙ্গির তুরাগ পাড়ে শুরু হচ্ছে বিশ্বের দ্বিতীয় বৃহত্তম মুসলমানদের ধর্মীয় সমাবেশ। তবে গতকাল বৃহস্পতিবার ইজতেমার দায়িত্বে নিয়োজিত মুসল্লিদের উদ্দেশ্যে বিশেষ বয়ান শুরু হয়েছে। উপমহাদেশে সুন্নী মতাবলম্বীদের সবচেয়ে বড় সংঘ তাবলিগ জামাতের মূলকেন্দ্র ভারতের দিল্লিতে। মাওলানা সাদের দাদা ভারতের ইসলামি পন্ডিত ইলিয়াছ কান্ধলভি ১৯২০ এর দশকে তাবলিগ জামাত নামের এই সংস্কারবাদী আন্দোলনের সূচনা করেন। বিশ্ব ইজতেমা তাবলিগ জামাতের বার্ষিক সমাবেশ। ১৬৫ একর জমির ওপর নির্মিত সুবিশাল প্যান্ডেল, খুঁটিতে নম্বর প্লেট, খিত্তা নম্বর, জুড়নেওয়ালি জামাতের কামরা, তাশকিল কামরা, হালকা নম্বর বসানো, দৈর্ঘ্যে ৪০ ফুট প্রস্থে ২৬ ফুট বয়ান মঞ্চ নির্মাণসহ যাবতীয় কাজ প্রায় শেষ। দেশের প্রত্যন্ত অঞ্চল থেকে তাবলিগ জামাত অনুসারীরা তাদের প্রয়োজনীয় জিনিসপত্র নিয়ে ইজতেমা ময়দানে জড়ো হতে শুরু করেছেন। লাখো মানুষের পদচারণায় মুখরিত হয়ে উঠছে তুরাগ পাড়। ৫৫তম বিশ্ব ইজতেমার প্রথম ধাপে ৮৭টি খিত্তাসহ ছয়টি সংরক্ষিত খিত্তা স্থাপন করা হয়েছে। দেশের সব জেলারসহ বিদেশীরাও এ ইজতেমায় অংশগ্রহণ করবেন। ২০১৮ বছর জানুয়ারিতে ঢাকায় বিশ্ব ইজতেমার সময় তবলিগের দিল্লির মারকাজ এবং দেওবন্দ মাদ্রাসার অনুসারীদের মধ্যে নেতৃত্ব নিয়ে দ্বন্দ্ব প্রকট আকার ধারণ করে। তবলিগ জামাতের অনুসারীদের মধ্যে মতভেদ থাকলেও একসাথেই ইজতেমায় যোগ দিচ্ছেন তারা।

বাগদাদে মার্কিন দূতাবাসের কাছে রকেট হামলা

ঢাকা অফিস ॥ ইরাকের রাজধানী বাগদাদের গ্রিন জোনের ভেতরে দুটি রকেট হামলা হয়েছে যার একটি মার্কিন দূতাবাসের কাছে বিস্ফোরিত হয়েছে। বুধবারের এ রকেট হামলায় কেউ হতাহত হয়নি বলে ইরাকের সামরিক বাহিনী বরাতে জানিয়েছে বার্তা সংস্থা রয়টার্স। ইরাক সরকারের বিভিন্ন দপ্তর, বাসভবন ও বিদেশি দূতাবাসগুলোর অবস্থান বাগদাদের অত্যন্ত সুরক্ষিত গ্রিন জোনের ভেতরে। রকেট হামলার সময় গ্রিন জোনের ভেতরে সতর্কতামূলক সাইরেন বেজে ওঠে। দুটি রকেটের মধ্যে অন্তত একটি মার্কিন দূতাবাসের ১০০ মিটারের মধ্যে আঘাত হানে বলে রয়টার্সকে জানিয়েছে ইরাকি পুলিশের সূত্রগুলো। এক বিবৃতিতে ইরাকের সামরিক বাহিনী বলেছে, “দুটি কাতিউশা রকেট গ্রিন জোনের ভেতরে এসে পড়েছে, তবে এতে কেউ হতাহত হয়নি।” রয়টার্সের প্রত্যক্ষদর্শী সাংবাদিকরা জানিয়েছেন, সাইরেন বাজার পরপরই বাগদাদে দুটি বড় ধরনের বিস্ফোরণের শব্দ পাওয়া যায়। তাৎক্ষণিকভাবে কোনো পক্ষ হামলার দায় স্বীকার করেনি। গত শুক্রবার বাগদাদ বিমানবন্দরে যুক্তরাষ্ট্রের ড্রোন হামলায় ইরানের কুদস ফোর্সের কমান্ডার মেজর জেনারেল কাসেম সোলেমানি নিহত হন। এর প্রতিক্রিয়ায় ইরাকে মার্কিন বাহিনীর দুটি ঘাঁটিতে ব্যালিস্টিক ক্ষেপণাস্ত্র হামলা চালায় ইরান। পাল্টাপাল্টি এসব ঘটনায় মধ্যপ্রাচ্যজুড়ে ব্যাপক যুদ্ধ ছড়িয়ে পড়ার আশঙ্কা বৃদ্ধি পাচ্ছে।

বিবার ‘লাইম’ রোগে আক্রান্ত

বিনোদন বাজার ॥ জাস্টিন বিবারের চেহারা এবং ত্বক নিয়ে বেশ কিছুদিন ধরেই সমালোচনা হচ্ছিল। এই প্রসঙ্গে তিনি বুধবার ইনস্টাগ্রামে লিখেছেন, ‘প্রায় দুই বছর ধরে লাইম রোগে ভুগছি, এখন পর্যন্ত রোগ নিরাময় হয়নি, তবে আমি সুস্থ হয়ে ফিরবো।’

বোরেলিয়া বার্গডোরফেরি ব্যাকটেরিয়ার কারণে লাইম রোগ হয়ে থাকে। ব্লাকলেগড টিকস পোকার কামড়ের মাধ্যমে মানুষের শরীরে এই ব্যাকটেরিয়া প্রবেশ করে। এ রোগে আক্রান্ত হলে জ্বর, মাথা ব্যথা, ক্লান্তি, অস্থিসন্ধিতে ব্যথা এবং ত্বকে ফুসকুড়ি দেখা দেয়।

এই রোগে আক্রান্ত ব্যক্তি সঠিক চিকিৎসা না পেলে সংক্রমণ ছড়িয়ে পড়ে হৃৎপি- এবং স্নায়ুতন্ত্রে। অ্যান্টিবায়োটিক ব্যবহার করে কয়েক সপ্তাহের মধ্যেই এই রোগটি নিরাময় করা সম্ভব। তবে বেশি ছড়িয়ে পড়লে তা ঝুঁকিপূর্ণ হয়ে যায়।

চার দিনের টেস্টের বিপক্ষে গেইল

ক্রীড়া প্রতিবেদক ॥ আন্তর্জাতিক ক্রিকেটে এই মুুহুর্তে সবচেয়ে আলোচিত বিষয় আইসিসির ‘চার দিনের টেস্ট’ ভাবনা। এর পক্ষে-বিপক্ষে আসছে নানা মত। এবার ক্রিস গেইল জানালেন নিজের ভাবনা। টেস্টকে পাঁচ দিনেই রাখা উচিত বলে মনে করেন টি-টোয়েন্টির কিংবদন্তি ব্যাটসম্যান। বিপিএল খেলতে বর্তমানে বাংলাদেশে আছেন গেইল। বৃহস্পতিবার সংবাদ সম্মেলনে নানা বিষয়ে নিজের অভিমত জানান চট্টগ্রাম চ্যালেঞ্জার্সের এই ওপেনার। এক পর্যায়ে উঠে আসে ‘চার দিনের টেস্ট’ প্রসঙ্গ। “আমি এর পক্ষে নই। আমি ১০০ (আসলে ১০৩টি) টেস্ট খেলেছি। কিছু ম্যাচ শেষ হয়েছিল তিন দিনে, কয়েকটি চার দিনে। তবে পাঁচ দিনের টেস্টই সেরা। টেস্টকে চার দিনে নামিয়ে আনাআমি এর পক্ষে নই।” “এটি যুগ যুগ ধরে চলে আসছে, তাহলে কেন শুধু শুধু এটিকে পাল্টানো পাঁচ দিনের টেস্ট খেলতে পারাটা জীবনকে বদলে দেওয়ার মতো একটা অভিজ্ঞতা হতে পারে।” আইসিসির এই পরিকল্পনার পক্ষে ইংল্যান্ড ও দক্ষিণ আফ্রিকা নিজেদের অবস্থান জানিয়েছে। ক্রিকেট অস্ট্রেলিয়াও বিষয়টি গুরুত্ব সহকারে ভেবে দেখবে বলে জানিয়েছে। ক্রিকেট দুনিয়ার সবচেয়ে প্রভাবশালী ভারতীয় ক্রিকেট বোর্ড (বিসিসিআই) এখনও এ বিষয়ে কোনো মন্তব্য করেনি। তবে ব্যক্তিগতভাবে এমন প্রস্তাবে সায় নেই বলে সম্প্রতি জানান ভারত অধিনায়ক বিরাট কোহলি। বেশি পরীক্ষা-নিরীক্ষা এই সংস্করণের ওপর বিরূপ প্রভাব ফেলতে পারে বলে মনে করেন তিনি। ভারতের সাবেক তারকা ব্যাটস্যান টেস্টের সর্বোচ্চ রান সংগ্রাহক শচীন টেন্ডুলকার ও অস্ট্রেলিয়ার কিংবদন্তি পেসার গে¬ন ম্যাকগ্রাও টেস্ট চার দিনে নামিয়ে আনার বিপক্ষে মত দিয়েছেন।

 

দ. আফ্রিকা সিরিজ শেষ অ্যান্ডারসনের

ক্রীড়া প্রতিবেদক ॥ দক্ষিণ আফ্রিকার বিপক্ষে চলমান টেস্ট সিরিজ থেকে ছিটকে গেছেন ইংল্যান্ডের জেমস অ্যান্ডারসন। পাঁজরে চোট পেয়েছেন অভিজ্ঞ এই পেসার। কেপ টাউনে সিরিজের দ্বিতীয় টেস্টের শেষ দিনে চোট নিয়ে শঙ্কা থাকা সত্ত্বেও দলের প্রয়োজনে বল করেন অ্যান্ডারসন। ম্যাচটি ১৮৯ রানে জিতে চার ম্যাচের সিরিজে ১-১ সমতা আনে ইংল্যান্ড। প্রথম ইনিংসে পাঁচ উইকেট পাওয়া অ্যান্ডারসন দ্বিতীয় ইনিংসে নেন দুই উইকেট। বুধবার ম্যাচের পর করা স্ক্যানে ধরা পড়ে তার চোট মূলত হাড়ে। সাধারণত এ ধরনের চোট থেকে সেরে উঠতে ছয় থেকে আট সপ্তাহ সময় লাগে। দ্রুত দেশে ফিরবেন টেস্ট ইতিহাসে সর্বোচ্চ উইকেট শিকারি পেসার। ইংল্যান্ডের হয়ে টেস্টে সবচেয়ে বেশি পাঁচ উইকেট পাওয়া অ্যান্ডারসনের বিকল্প হিসেবে দক্ষিণ আফ্রিকায় দলের সঙ্গে থাকছেন ক্রেইগ ওভারটন। ১৬ জানুয়ারি পোর্ট এলিজাবেথে শুরু হবে সিরিজের তৃতীয় টেস্ট। জোহানেসবার্গে শেষ ম্যাচ শুরু ২৪ জানুয়ারি। সাম্প্রতিক সময়ে চোটের কারণে বারবার মাঠের বাইরে যেতে হয়েছে ৩৭ বছর বয়সী অ্যান্ডারসনকে। গত বছর খেলতে পারেন মোটে পাঁচটি টেস্ট। পায়ের পেশির চোটে ঘরের মাঠে অনেক প্রতীক্ষার অ্যাশেজ থেকে ছিটকে যান মাত্র চার ওভার বল করেই। আর ১৬টি উইকেট পেলে টেস্ট ইতিহাসে চতুর্থ বোলার হিসেবে ৬০০ উইকেটের মাইলফলক স্পর্শ করবেন অ্যান্ডারসন।

তিন হ্যাটট্রিকে চতুর্থ রশিদ খান

ক্রীড়া প্রতিবেদক ॥ ক্যারিয়ারে একটি হ্যাটট্রিকই কত বোলারের আরাধ্য। অনেক বিখ্যাত বোলারও পাননি এই স্বাদ। রশিদ খান সেখানে টি-টোয়েন্টিতে করে ফেললেন তিনটি হ্যাটট্রিক! বিগ ব্যাশে হ্যাটট্রিক করে আফগান লেগ স্পিনার নাম লেখালেন রেকর্ড বইয়ে। বিগ ব্যাশে বৃহস্পতিবার অ্যাডিলেইড স্টাইকার্সের হয়ে সিডনি সিক্সার্সের বিপক্ষে হ্যাটট্রিক করেন রশিদ। টি-টোয়েন্টিতে তৃতীয় হ্যাটট্রিকে স্পর্শ করলেন রেকর্ড। ২০ ওভারের ক্রিকেটে তিনটি হ্যাটট্রিক আছে আর তিন বোলারের। অ্যাডিলেইডে এবার রশিদের হ্যাটট্রিকের শিকার জেমস ভিন্স, জ্যাক এডওয়ার্ডস ও জর্ডান সিল্ক। তার প্রথম হ্যাটট্রিক ছিল ২০১৭ সিপিএলে গায়ানা অ্যামাজন ওয়ারিয়র্সের হয়ে জ্যামাইকা তালাওয়াহসের বিপক্ষে। রশিদের আরেকটি হ্যাটট্রিক গত ফেব্র“য়ারিতে, আফগানিস্তান জাতীয় দলের হয়ে আয়ারল্যান্ডের বিপক্ষে। রশিদের আগে টি-টোয়েন্টিতে তিনটি করে হ্যাটট্রিকের স্বাদ পেয়েছেন ভারতের অমিত মিশ্র, অস্ট্রেলিয়ার অ্যান্ড্রু টাই ও ওয়েস্ট ইন্ডিজের আন্দ্রে রাসেল। প্রথম বোলার হিসেবে টি-টোয়েন্টিতে তিনটি হ্যাটট্রিকের কীর্তি প্রথম গড়েছিলেন অমিত মিশ্র। ভারতীয় লেগ স্পিনারের তিনটি হ্যাটট্রিকই আইপিএলে; ২০০৮, ২০১১ ও ২০১৩ আসরে।

টাই তিনটি হ্যাটট্রিক করেন এক বছরের মধ্যেই। দুটি বিগ ব্যাশে, একটি আইপিএলে। ২০১৭ সালের জানুয়ারিতে এই পেসার ব্রিজবেন হিটের হয়ে করেছিলেন প্রথমটি, এপ্রিলে আইপিএলে গুজরাট লায়ন্সের হয়ে দ্বিতীয়টি, ডিসেম্বরে পার্থ স্কর্চার্সের হয়ে তৃতীয়টি। রাসেল প্রথম হ্যাটট্রিক করেছিলেন ২০১৩ সালে, ওয়েস্ট ইন্ডিজ ‘এ’ দলের হয়ে ভারত ‘এ’ দলের বিপক্ষে। দ্বিতীয়টি ২০১৮ সিপিএলে জ্যামাইকা তালাওয়াহসের হয়ে ত্রিনবাগো নাইট রাইডার্সের বিপক্ষে ও আরেকটি গত বিপিএলে ঢাকা ডায়নামাইটসের হয়ে চিটাগং ভাইকিংসের হয়ে। টি-টোয়েন্টিতে দুটি করে হ্যাটট্রিক আছে বাংলাদেশের আল আমিন হোসেন, দক্ষিণ আফ্রিকার ইমরান তাহির, পাকিস্তানের ওয়াহাব রিয়াজ, নিউ জিল্যান্ডের টিম সাউদি, ওয়েস্ট ইন্ডিজের লেনক্স কাশ, শ্রীলঙ্কার লাসিথ মালিঙ্গা ও ভারতের যুবরাজ সিংয়ের। যুবরাজ আবার একটি জায়গায় অনন্য। দুইবার নিজে হ্যাটট্রিক করেছেন, দুইবার নিজে হ্যাটট্রিকের শিকারও হয়েছেন! তিন হ্যাটট্রিকের পাশাপাশি আরেকটি রেকর্ডেও টি-টোয়েন্টিতে মাত্র পাঁচ বোলারের একজন রশিদ। আয়ারল্যান্ডের বিপক্ষে ওই হ্যাটট্রিকে রশিদ উইকেট নিয়েছিলেন টানা চার বলে! টানা চার বলে উইকেটের কীর্তি সবার আগে গড়েছিলেন রাসেল, তার প্রথম হ্যাটট্রিকের ম্যাচে। গত নভেম্বরে ভারতের সৈয়দ মুশতাক আলি ট্রফিতে টানা চার বলে উইকেট নেন পেসার অভিমন্যু মিঠুন। গত সেপ্টেম্বরে লাসিথ মালিঙ্গাও নাম লেখান এই রেকর্ডে। নিউ জিল্যান্ডের বিপক্ষে টানা চার বলে আউট করেন কলিন মানরো, হ্যামিশ রাদারফোর্ড, কলিন ডি গ্র্যান্ডহোম ও রস টেইলরকে। আন্তর্জাতিক টি-টোয়েন্টিতে টানা চার বলে উইকেট নেই আর কারও। মালিঙ্গা এই স্বাদ পেয়েছেন ওয়ানডেতেও। বাংলাদেশের একজনেরও আছে টানা চার বলে উইকেটের কীর্তি। ২০১৩ সালের ডিসেম্বরে বিজয় দিবস টি- টোয়েন্টিতে এই কৃতিত্ব দেখিয়েছিলেন আল আমিন হোসেন। ইউসিবি-বিসিবি একাদশের হয়ে আবাহনী লিমিটেডের বিপক্ষে ইনিংসের শেষ ওভারে তৃতীয় থেকে ষষ্ঠ বলে আউট করেছিলেন নাজমুল হোসেন মিলন, সোহরাওয়ার্দী শুভ, নাঈম ইসলাম জুনিয়র ও নাবিল সামাদকে। ওই ওভারের প্রথম বলে মেহেদি মারুফকেও আউট করেছিলেন আল আমিন। দুর্দান্ত সেই ওভারে তাই তার উইকেট ছিল ৫টি!

লোকে আমাকে এখনো মোটা বলে : সোনাক্ষী

বিনোদন বাজার ॥ সোনাক্ষী সিনহা বলিউডে পা রেখেই বাজিমাত করেছিলেন। কিন্তু তার অতিরিক্ত ওজনের কারণে বাঁকা বাঁকা অনেক মন্তব্য শুনতে হয়েছে তাকে। এরপর সোনাক্ষীর প্রথম সিনেমা ‘দাবাং’-এর নায়ক সালমান খানও তাকে ওজন কমাতে সাহায্য করেন। খুব অল্প সময়েই দাবাং তারকা প্রায় ৩০ কেজি ওজন কমিয়েছেন। কিন্তু তারপরও মোটা নায়িকার তকমা শুনতে হয় তাকে।

এ বিষয়ে সোনাক্ষী সিনহা বলেন, ‘আমার কোমরের মাপ যা-ই হোক না কেন, আমাকে সবসময়ই মোটা বলা হয়। এটি সত্যিই খুব দুঃখজনক। এক সময় সত্যিই আমার ওজন অনেক বেশি ছিল, তবে বলিউডে অভিষেকের আগে আমি বাড়তি ওজন ঝরিয়েছি।’

বলিউডে আসার সময় সোনাক্ষীর ওজন ছিল ৯০ কেজি। কিন্তু তিনি খুব অল্প সময়েই ৬০ কেজিতে নামিয়ে এনেছেন। এজন্য তাকে খুব পরিশ্রমও করতে হয়েছে। দিনে অন্তত দু-বার জিমে গিয়েছেন। খেয়েছেন নিয়মমাফিক প্রোটিনসমৃদ্ধ খাবার। ওজন বেশি হওয়ায় সব জায়গায় অনেক বিদ্রƒপ করা হতো তাকে, তাই অন্তত ৩ মাস ওজন কমানোই ছিল তার মূল কাজ।

এই অভিনেত্রী বলেন, ‘এরপরও লোকে যখন বলে যে, অভিনেত্রী হিসেবে আমি বেশ মোটা, তা আমাকে আঘাত করে। হ্যাঁ, আমি আগে মোটা ছিলাম, কিন্তু রূপালি পর্দায় আসার আগে আমি অতিরিক্ত ওজন ঝরিয়েছি। তাছাড়া ওজনের সঙ্গে মেধার কোনো সম্পর্ক নেই। তবে অবশ্যই তোমার মেধা থাকতে হবে!’

সোনাক্ষীর আরেক পরিচয় রয়েছে ভোজনরসিক হিসেবে। কিন্তু খুব দ্রুত ওজন কমাতে গিয়ে তার প্রিয় অনেক খাবার খাদ্য তালিকা থেকে বাদ দিতে হয়েছে। জিমে যাওয়া একটি অপছন্দের কাজ হলেও করতে হয়েছে। সুষম এবং উচ্চ প্রোটিন সমৃদ্ধ খাবার খেয়ে নিজেকে ফিট রেখেছেন সোনাক্ষী। তারপরও ওজন নিয়ে কটাক্ষ শুনতে হচ্ছে এই নায়িকাকে।

সোনাক্ষীকে সর্বশেষ বলিউড সুপারস্টার সালমান খানের বিপরীতে দাবাং থ্রি ছবিতে অভিনয় করতে দেখা গেছে। গত বছরের ২০ ডিসেম্বর মুক্তি পেয়েছে ছবিটি। এরইমধ্যে ১০০ কোটি রুপির মাইলফলক স্পর্শ করেছে দাবাং থ্রি সিনেমাটি।

জিম্বাবুয়ে সিরিজই কী শেষ মাশরাফির?

ক্রীড়া প্রতিবেদক ॥ আগামী মাসে বাংলাদেশ সফরে আসছে জিম্বাবুয়ে। পূর্ব নির্ধারিত সূচি অনুযায়ী, আসছে মার্চে এখানে আসার কথা ছিল তাদের। কিন্তু ওই সময় জাতির জনক বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের জন্মশত বার্ষিকী উপলক্ষে ঢাকায় দুটি প্রীতি আন্তর্জাতিক টি-২০ ম্যাচ হবেজিম্বাবুয়ে সিরিজই কী শেষ মাশরাফির?
ক্রীড়া প্রতিবেদক ॥ আগামী মাসে বাংলাদেশ সফরে আসছে জিম্বাবুয়ে। পূর্ব নির্ধারিত সূচি অনুযায়ী, আসছে মার্চে এখানে আসার কথা ছিল তাদের। কিন্তু ওই সময় জাতির জনক বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের জন্মশত বার্ষিকী উপলক্ষে ঢাকায় দুটি প্রীতি আন্তর্জাতিক টি-২০ ম্যাচ হবে। এজন্য সিরিজটি এগিয়ে আনার পরিকল্পনা করছে বাংলাদেশ ক্রিকেট বোর্ড (বিসিবি)। এতে আলোচনায় চলে এসেছেন জাতীয় দলের ওয়ানডে অধিনায়ক মাশরাফি বিন মুর্তজা। প্রশ্ন উঠেছে, ওই সিরিজ দিয়েই কী আন্তর্জাতিক ক্যারিয়ারের ইতি টানবেন তিনি? অবশ্য বিসিবির পক্ষ থেকে জানানো হয়েছে, অবসরের সিদ্বান্ত মাশরাফি নিজেই নেবেন।এবারের বাংলাদেশ সফরে ১টি টেস্ট ও ৫টি টি-টোয়েন্টি ম্যাচ খেলার সূচি রয়েছে জিম্বাবুয়ের। তবে ম্যাশের জন্য ওই সিরিজে দুটি ওয়ানডে রাখার পরিকল্পনা রয়েছে বোর্ডের। গেল মে’তে ইংল্যান্ড বিশ্বকাপে সবশেষ ওয়ানডে খেলেন মাশরাফি। এরপর শ্রীলংকার বিপক্ষে ৩ ম্যাচ ওয়ানডে সিরিজ খেলার জন্য প্রস্তুত ছিলেন তিনি। কিন্তু শেষ মুহূর্তে ইনজুরিতে পড়ে সিরিজ থেকে ছিটকে পড়েন নড়াইল এক্সপ্রেস। অবশ্য বিশ্বকাপেই অবসর নেয়ার কথা ছিল মাশরাফির। কিন্তু বিসিবি সভাপতি নাজমুল হাসান পাপন বলেন, দেশের মাটিতেই অবসর নেবেন বাংলাদেশের সর্বকালের সফল অধিনায়ক। প্রয়োজন হলে তার জন্য বিশেষ ওয়ানডে আয়োজন করা হবে। ২০০৯ সালে সবশেষ টেস্ট খেলেন মাশরাফি। ইতিমধ্যে টি-টোয়েন্টি থেকে অবসর নিয়েছেন তিনি। জাতীয় দলের হয়ে শুধু ওয়ানডে খেলছেন ক্যাপ্টেন ফ্যান্টাস্টিক। বিশ্বকাপের পর দেশের মাটিতে কোনো আন্তর্জাতিক ওয়ানডে ম্যাচ খেলেনি বাংলাদেশ। তবে শ্রীলংকার মাটিতে ৩ ম্যাচ সিরিজ খেলেছে টাইগাররা। ওই সিরিজে হোয়াইটওয়াশ হয় তারা। তবে আনুষ্ঠানিকভাবে মাশরাফির অবসর নিয়ে কিছু বলেনি বিসিবি। তার ব্যাপারে মিডিয়া কমিটির চেয়ারম্যান জালাল ইউনুস জানান, মাশরাফির অবসর নিয়ে আমরা কোনো সিদ্বান্ত নিতে পারি না। এমন সিদ্বান্ত তার নিজেরই নেয়া উচিত।আর আমাদের কাছ থেকে জাঁকজমকপূর্ণ বিদায় ওর প্রাপ্য।
। এজন্য সিরিজটি এগিয়ে আনার পরিকল্পনা করছে বাংলাদেশ ক্রিকেট বোর্ড (বিসিবি)। এতে আলোচনায় চলে এসেছেন জাতীয় দলের ওয়ানডে অধিনায়ক মাশরাফি বিন মুর্তজা। প্রশ্ন উঠেছে, ওই সিরিজ দিয়েই কী আন্তর্জাতিক ক্যারিয়ারের ইতি টানবেন তিনি? অবশ্য বিসিবির পক্ষ থেকে জানানো হয়েছে, অবসরের সিদ্বান্ত মাশরাফি নিজেই নেবেন।এবারের বাংলাদেশ সফরে ১টি টেস্ট ও ৫টি টি-টোয়েন্টি ম্যাচ খেলার সূচি রয়েছে জিম্বাবুয়ের। তবে ম্যাশের জন্য ওই সিরিজে দুটি ওয়ানডে রাখার পরিকল্পনা রয়েছে বোর্ডের। গেল মে’তে ইংল্যান্ড বিশ্বকাপে সবশেষ ওয়ানডে খেলেন মাশরাফি। এরপর শ্রীলংকার বিপক্ষে ৩ ম্যাচ ওয়ানডে সিরিজ খেলার জন্য প্রস্তুত ছিলেন তিনি। কিন্তু শেষ মুহূর্তে ইনজুরিতে পড়ে সিরিজ থেকে ছিটকে পড়েন নড়াইল এক্সপ্রেস। অবশ্য বিশ্বকাপেই অবসর নেয়ার কথা ছিল মাশরাফির। কিন্তু বিসিবি সভাপতি নাজমুল হাসান পাপন বলেন, দেশের মাটিতেই অবসর নেবেন বাংলাদেশের সর্বকালের সফল অধিনায়ক। প্রয়োজন হলে তার জন্য বিশেষ ওয়ানডে আয়োজন করা হবে। ২০০৯ সালে সবশেষ টেস্ট খেলেন মাশরাফি। ইতিমধ্যে টি-টোয়েন্টি থেকে অবসর নিয়েছেন তিনি। জাতীয় দলের হয়ে শুধু ওয়ানডে খেলছেন ক্যাপ্টেন ফ্যান্টাস্টিক। বিশ্বকাপের পর দেশের মাটিতে কোনো আন্তর্জাতিক ওয়ানডে ম্যাচ খেলেনি বাংলাদেশ। তবে শ্রীলংকার মাটিতে ৩ ম্যাচ সিরিজ খেলেছে টাইগাররা। ওই সিরিজে হোয়াইটওয়াশ হয় তারা। তবে আনুষ্ঠানিকভাবে মাশরাফির অবসর নিয়ে কিছু বলেনি বিসিবি। তার ব্যাপারে মিডিয়া কমিটির চেয়ারম্যান জালাল ইউনুস জানান, মাশরাফির অবসর নিয়ে আমরা কোনো সিদ্বান্ত নিতে পারি না। এমন সিদ্বান্ত তার নিজেরই নেয়া উচিত।আর আমাদের কাছ থেকে জাঁকজমকপূর্ণ বিদায় ওর প্রাপ্য।

রূপকথার প্রেমের গল্প শেয়ার করলেন কাজল

বিনোদন বাজার ॥ কাজল এবং অজয় দেবগণের প্রেমের গল্প কোনও রূপকথার গল্পের চেয়ে কম সুন্দর নয়। ১৯৯৯ সালে অজয়কে বিয়ে করেছিলেন কাজল, কিন্তু এতদিন পরেও সেই বিয়ের দিনের ঘটনাগুলোকে যেন নিজের চোখের সামনে ভাসতে দেখেন অভিনেত্রী। সোশ্যাল মিডিয়ায় সাম্প্রতিক একটি পোস্টে কাজল তার স্বামী এবং এক সময়ের প্রেমিক অজয় দেবগণের সঙ্গে ডেটিংয়ের গল্প শেয়ার করেছেন।

কাজল বলেন, ‘২৫ বছর আগে হালচালের সেটে আমাদের একে অপরের সঙ্গে দেখা হয়- আমি শট দেওয়ার জন্য প্রস্তুত হয়ে জিজ্ঞাসা করেছিলাম, আমার নায়ক কোথায়?’ তখন কেউ একজন ইশারা করে তাকে দেখান। পরে যদিও ওই ছবির সেটে থাকতে থাকতে আমরা একে অপরের বন্ধু হয়ে উঠি। আমি সেই সময় অন্য একজনের সঙ্গে সম্পর্কে ছিলাম এবং ও নিজেও অন্য একটি মেয়ের সঙ্গে সম্পর্কে ছিল। এমন দিনও গেছে আমি আমার সেই সময়ের বয়ফ্রেন্ডের বিরুদ্ধে ওর কাছে অভিযোগ করেছি! পরে আমরা দুজনেই বুঝতে পারলাম আমরা একে অপরের সঙ্গে অনেক বেশি স্বচ্ছন্দ বোধ করছি।’

ওই পোস্টে কাজল আরও লেখেন, একে অপরের থেকে যেহেতু বেশ খানিকটা দূরে থাকি তাই প্রেম বেশিরভাগ সময়ে গাড়ির মধ্যেই চলতো।

নিজের দাম্পত্যের নানা কথা ছাড়াও প্রথমবার গর্ভবতী হওয়া এবং গর্ভপাতের দুর্ভাগ্যজনক ঘটনাও শেয়ার করেছেন কাজল।

প্রসঙ্গত, প্রায় ১০ বছর পর ফের জুটি বেঁধে সেলুলয়েডে ফিরছেন কাজল এবং অজয় দেবগণ। তানাজি: দ্য আনসং ওয়ারিয়র ছবিতে একসঙ্গে দেখা যাবে তাদের। ছবিটি আগামী ১০ জানুয়ারি মুক্তি পাবে।

রাহুল গান্ধী ভারতের প্রধানমন্ত্রী হবেন: দীপিকা

বিনোদন বাজার ॥ ভারতের জওহরলাল নেহেরু বিশ্ববিদ্যালয়ের (জেএনইউ) নির্যাতিত ছাত্রছাত্রীদের পাশে দাঁড়িয়ে বিজেপির তোপের মুখে পড়েছেন বলিউড তারকা দীপিকা পাড়ুকোন। দীপিকার নতুন ছবি ‘ছপাক’ বয়কটের ডাক দিয়েছেন ক্ষমতাসীন নেতারা।

শুধু এখানেই থেমে থাকেনি বিজেপি। দীপিকার প্রায় এক দশক আগেকার একটি ভিডিও খুঁজে বের করেছেন তারা।

সেখানে এক সাক্ষাৎকারে দীপিকাকে প্রশ্ন করা হয়েছিল, ‘কোনো যুব নেতার কথা বলবেন, যিনি ভাল কাজ করছেন?’

দীপিকার উত্তর ছিল, ‘রাজনীতির বিষয়ে বেশি জানি না। যেটুকু টিভিতে দেখি, তাতে রাহুল গান্ধী আমাদের দেশের জন্য যা করছেন, তা উৎকৃষ্ট উদাহরণ। আশা করি, এক দিন তিনি দেশের প্রধানমন্ত্রী হবেন।’

এরপর তাকে প্রশ্ন করা হয়, ‘আপনি চান রাহুল গান্ধী প্রধানমন্ত্রী হবেন? কেন বিশেষ করে তিনি?’ জবাবে দীপিকা বলেছিলেন, ‘নিশ্চয়ই (প্রধানমন্ত্রী হওয়ার ব্যাপারে)। ঐতিহ্য ও ভবিষ্যতের কথা মাথায় রেখে তিনি যুবকদের সঙ্গে যোগাযোগ তৈরি করতে পারেন।’

এদিকে বিজেপির কর্মকা- দেখে কংগ্রেসের মুখপাত্র পবন খেরা বলেন, ‘বিজেপি কি মনে করে, ছবির প্রচারের জন্য দীপিকার নাগপুরের আরএসএস সদর দফতরে যাওয়া উচিত ছিল? বিশ্ববিদ্যালয়ে অশান্তি হচ্ছে, খোদ প্রধানমন্ত্রী ও স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী কেন ছাত্রদের সঙ্গে কথা বলতে যাচ্ছেন না? ছাত্রদের রোষ দূর করার চেষ্টা করেছেন তাঁরা? উল্টে তো আক্রান্তদের বিরুদ্ধেই মামলা হচ্ছে।’

বছরের যে কোনো সময় মিষ্টিকুমড়া বোনা যায়

কৃষি প্রতিবেদক ॥ বাংলাদেশের আবহাওয়ায় বছরের যে কোনো সময় মিষ্টিকুমড়া বোনা যায়, তবে কৃষকরা সাধারণত রবি মৌসুমে অর্থাৎ নভেম্বর থেকে জানুয়ারি এবং খরিফ মৌসুমে ফেব্র“য়ারি থেকে মে মাস পর্যন্ত সময়ে মিষ্টিকুমড়া চাষ করে থাকেন। জমি তৈরি ও বীজ বপন : অল্প পরিমাণে মিষ্টিকুমড়া উৎপাদন করতে হলে বাসগৃহের আশপাশে ছায়াহীন স্থানে মাচা করে বীজ বোনা যেতে পারে। ব্যবসাভিত্তিক চাষের ক্ষেত্রে প্রথমে চাষ ও মই দিয়ে জমি তৈরি করে নির্দিষ্ট দূরত্বে মাচা অথবা সারিতে বীজ বুনতে হয়। ঝোপালো জাতের ক্ষেত্রে পাশাপাশি দুটি মাচার মধ্যে ২ মিটার দূরত্ব রাখা যেতে পারে। লতানো জাতে এটি ৩ থেকে ৪ মিটার হওয়া বাঞ্ছনীয়। বীজ রোপণ ঃ বৈশাখী কুমড়ার জন্য ২ দশমিক ৪ থেকে ২ দশমিক ৭ মিটার পরপর এবং অন্যান্য কুমড়ার জন্য ৩ থেকে ৩ দশমিক ৬ মিটার পরপর মাচা তৈরি করা যেতে পারে। মাচা তৈরি করতে (৮০ দ্ধ ৮০ দ্ধ ৮০ ঘন সেন্টিমিটার) গর্ত করলে ভালো হয়। একেকটি মাচায় প্রথমে ছয় থেকে সাতটি বীজ বুনতে হয়। পরে চারা অবস্থায় দুটি করে ভালো চারা রাখলেই চলে। হেক্টরপ্রতি ১ দশমিক ২ থেকে ১ দশমিক ৯ কেজি বীজের প্রয়োজন। বৈশাখী কুমড়ার লতা ভূমিতে বাইতে দেয়া যেতে পারে। অন্যান্য কুমড়ার জন্য মাচার আবশ্যক হয়। সার প্রয়োগ ঃ কুমড়ার জন্য হেক্টরপ্রতি ৫ টন গোবর সার, ৩৫০ থেকে ৪০০ কেজি খৈল, ১২০ থেকে ১৩০ কেজি ইউরিয়া, ১৫০ থেকে ১৭৫ কেজি টিএসপি এবং ১২০ থেকে ১৩০ কেজি এমপি দরকার। গোবর সার, ছাই, খৈল ও ট্রিপল সুপার ফসফেট গর্তের মাটির সঙ্গে মিশিয়ে গর্ত ভর্তি করে ১০ থেকে ১২ দিন পর মাচায় বীজ বপন করতে হয়। চারা ২৫ থেকে ৩০ সেন্টিমিটার দীর্ঘ হওয়ার পর মাচার চতুর্দিক দিয়ে একটি অগভীর নালা কেটে নালার মাটির সঙ্গে ইউরিয়া সার মিশিয়ে নালা ভর্তি করে দিতে হয়। মিউরেট অব পটাশ সার ইউরিয়ার সঙ্গে প্রয়োগ করতে হয়। অর্ন্তবতীকালীন পরিচর্যা ঃ শুষ্ক মৌসুমে মিষ্টিকুমড়ার চাষ করা হলে অধিকাংশ স্থানে সেচের প্রয়োজন হয়। বর্ষাকালে পানি নিষ্কাশনের ব্যবস্থা করা খুবই গুরুত্বপূর্ণ। বাউনির ওপর কান্ড তুলে দিলে ফলন বেশি ও ফুলের গুণ ভালো হয় ; কিন্তু বাউনির খরচ বেড়ে যাওয়াতে এর অর্থনৈতিক দিক বিবেচনা করতে হয়। জমির ফসল হিসেবে লতানো জাতের চাষ করা হলে ফল ধরার সময় ফলের নিচে কিছু খড় কুটো বিছিয়ে দেয়া ভালো যাতে মাটির সংস্পর্শে এসে ফল রোগাক্রান্ত না হয়। কৃত্রিম পরাগায়নের জন্য ভোরে পুরুষ ফুলের পরাগধানী হাতে নিয়ে স্ত্রী ফুলের গর্ভমুন্ডে আস্তে করে ঘষে দিতে হয়। কোনো কোনো সময় ফ্রুট ফ্লাই নামক পোকা ফল ধারণে সমস্যা সৃষ্টি করে। ওষুধ দিয়ে এ পোকা দমন করতে না পারলে ফোটার আগ থেকে ফল অনেকটা বড় না হওয়া পর্যন্ত কাপড় অথবা পলিথিনের পোঁটলা দিয়ে ঢেকে রাখলে উপকার পাওয়া যায়। এ ক্ষেত্রে কৃত্রিম পরাগায়নের প্রয়োজন হয়। গাছ ছাঁটাই ঃ অনেক সময় গাছের অতিরিক্ত বৃদ্ধির জন্য কুমড়ার ফলন কম হয়। এরূপ অবস্থায় গাছের কিছু লতাপাতা কেটে দেয়া যেতে পারে। পরাগায়ন সমস্যা ঃ কখনো কখনো ফুল থেকে কুমড়া বের হওয়ার পর শুকিয়ে যায়, কিংবা ঝরে যায়। মাটিতে টিএসপি সার প্রয়োগ করা এবং প্রত্যুষে ফুল ফোটার পর পুংজাতীয় ফুলের মুন্ড ফল প্রদানকারী পুষ্পের গর্ভকেশরের গায়ে বুলিয়ে দেয়া যেতে পারে। পোকা দমন ঃ কুমড়া জাতীয় গাছের বিভিন্ন পোকার মধ্যে লালপোকা, কাটালে পোকা এবং ফলের মাছি উল্লেখযোগ্য। এ পোকা দমনের জন্য সেভিন (১০ শতাংশ), ডাস্টিং কিংবা নেক্সিয়ান (শূন্য দশমিক ৫ শতাংশ) এবং ডায়াজিননের (শূন্য দশমিক ৭ শতাংশ) ¯েপ্র প্রয়োগ করা যেতে পারে। ফলের মাছির কিড়া কচি ফলে ছিদ্র করে প্রবেশ করে। এতে আক্রান্ত স্থান পচে যায় কিংবা সে অংশের বৃদ্ধি থেমে যায়। এ পোকা দমনের জন্য মাঝে মধ্যে ডিপ্টারেক্স, নেক্সিয়ন বা ডাইব্রেম ব্যবহার করা যেতে পারে। রোগ দমন ঃ কুমড়াজাতীয় গাছের রোগের মধ্যে পাউডারি মিলডিউ, ডাউনি মিলডিড ও অ্যানথ্রোকনোজ প্রধান। দুই সপ্তাহ পরপর ডায়াথেন বা পার্জেট ¯েপ্র করা যেতে পারে। প্রতিষেধকরূপে ১০০ গ্যালন গরম পানিতে ১ কেজি জাইনের মিশ্রিত করে বীজ শোধন করা উত্তম।