খাজানগর ফকির বাড়ি ফাউন্ডেশনের উদ্যোগে কম্বল বিতরণ

নিজ সংবাদ ॥ কুষ্টিয়া সদর উপজেলার খাজানগর ফকির বাড়ি ফাউন্ডেশনের উদ্যোগে নিজ এলাকা বটতৈল ইউনিয়নের কয়েকশ চাতাল শ্রমিক ও গরীব দুস্থের মাঝে শীতবস্ত্র বিতরণ করা হয়েছে। সোমবার সকালে খাজানগরে উপস্থিত হয়ে খাজানগর ফকির বাড়ি ফাউন্ডেশন পক্ষ থেকে পাঁচ শতাধিক দরিদ্র মানুষের মাঝে শীতবস্ত্র বিতরণ করেন শিল্পপতি হাজী সালাম ফকির, বটতৈল ইউনিয়ন আওয়ামীলীগের সভাপতি বীর মুক্তিযোদ্ধা আবু বক্কর সিদ্দিক, জেলা কৃষক লীগ নেতা এফ এম এনামুল হক, সাঈদুস সালাম আদনান, বাবু ফকির, বীর মুক্তিযোদ্ধা আবুল হাশেম, যুবলীগ নেতা আলমগীর হোসেন, আওয়ামী লীগ নেতা ঈসাদুল হোসেন, আলতাফ মেম্বর, বটতৈল ইউনিয়ন স্বেচ্ছাসেবক লীগের সভাপতি শহিদুল ইসলাম, সেলিম মৃধা, মামুন ফকির প্রমুখ।

গাংনীতে ছাত্রলীগের কমিটি বাতিলের দাবীতে কুশপুত্তলিকা দাহ

গাংনী প্রতিনিধি ॥ মেহেরপুরের গাংনী উপজেলা ছাত্রলীগের কমিটি গঠনকে কেন্দ্র করে মেহেরপুর জেলা ছাত্রলীগের সাধারণ সম্পাদক মুনতাছির জামান মৃদুলের কুশপুত্তলিকা দাহ করা হয়েছে। গতকাল সোমবার দুপুর ১২টার দিকে গাংনী উপজেলা শহরের বাসস্ট্যান্ডে কুশপুত্তলিকা দাহ করে উপজেলা ছাত্রলীগের একাংশের নেতা-কর্মীরা। গাংনী উপজেলা ছাত্রলীগের সভাপতি হিসাবে আমিনুল ইসলাম সেন্টু ও সাধারণ সম্পাদক হিসাবে ফয়সাল জাহান শিশির-এর নাম ঘোষণা করে মেহেরপুর জেলা কমিটি। এ কমিটি গঠন নিয়ে একাংশের নেতা গাংনী উপজেলা ছাত্রলীগের সহ-সভাপতি জীবন আকবর, গাংনী পৌর ছাত্রলীগের সভাপতি ইমরান হাবীব ও গাংনী সরকারী ডিগ্রী কলেজ ছাত্রলীগের সভাপতি মাহমুদ হাসিবের নেতৃত্বে গতকাল জেলা ছাত্রলীগের সাধারণ সম্পাদক মৃদুলের বিরুদ্ধে এক বিক্ষোভ মিছিল বের করা হয়। পরে গাংনী বাস্ট্যান্ডে মৃদুলের কুশপুত্তলিকা দাহ করা হয়। গাংনী সরকারী ডিগ্রী কলেজ ছাত্রলীগের সভাপতি  মাহমুদ হাসিব জানান- জেলা ছাত্রলীগের সাধারণ সম্পাদক মুনতাছির জামান মৃদুল অনিয়মতান্ত্রিকভাবে ছাত্রলীগের পকেট কমিটি গঠন করেছেন। এ পকেট কমিটি বাতিল না পর্যন্ত আমরা প্রতিবাদ-কর্মসূচি চালিয়ে যাবো। এদিকে মৃদুলের সাথে মোবাইল ফোনে যোগাযোগ করার চেষ্টা করা হলে তাকে পাওয়া যায়নি।

গাংনী আনসার-ভিডিপি কার্যালয়ের সংস্কারে পুকুর চুরি

দুর্নীতির তদন্ত রিপোর্ট  ইউএনও অফিসে ফাইলবন্দি

গাংনী প্রতনিধি ॥ মেহেরপুরের গাংনী উপজেলা আনসার ভিডিপি কার্যালয়ের সংস্কারের কাজে ব্যাপক অনিয়ম দুর্নীতির অভিযোগ উঠ্েেছ। নামমাত্র কাজ করে লক্ষ লক্ষ টাকা হাতিয়ে পুকুর চুরির মত খবর ছড়িয়ে পড়লেও সংশ্লিষ্ট মহলের টনক নড়েনি। সাংবাদিকদের লেখালেখির কারণে দুর্নীতি খুঁজতে তৎকালীন গাংনী উপজেলা নির্বাহী অফিসার ৩ সদস্য বিশিষ্ট তদন্ত কমিটি করে দিলেও আজও সেই রিপোর্ট আলোর মুখ দেখেনি। পত্রিকায় একাধিক সংবাদ প্রকাশের পর তদন্ত কমিটি অবশেষে গাংনী উপজেলা নির্বাহী অফিসারের কার্যালয়ে তদন্ত রিপোর্ট জমা দিলেও ৬ মাস যাবত ই্উএনও অফিসেই ফাইল বন্দি হয়ে পড়ে রয়েছে। উপজেলা নির্বাহী অফিসার দিলারা রহমান যোগদানের ৬ মাস অতিবাহিত হলেও এর কোন প্রতিকার না হওয়ায় সচেতন মহলে নানা প্রশ্ন উঠেছে। এর রহস্য কোথায়? তাহলে কি বলা যায়, সকলকে অর্থের বিনিময়ে ম্যানেজ করে ঠিকাদার ফুরফুরে মেজাজে রয়েছে। তদন্ত কমিটির ব্যাপারে ঠিকাদার লাবলু জানান-‘আমি কিছুই জানি না।’  আনসার-ভিডিপির জেলা এ্যাডজুটেন্ট (কুষ্টিয়া অঞ্চল) তরফদার আলমগীর হোসেন জানান, আমার মনে হয়েছে, উক্ত  ৩ কক্ষ বিশিষ্ট টিনসেডের ঘরটি সংস্কার করতে ১৪ লক্ষ টাকার কোন প্রয়োজন ছিল না। যে কাজ করা হয়েছে সেটুকু ৫ লক্ষ টাকায় নির্মাণ করা সম্ভব। এর মধ্যে ভ্যাট-ট্যাক্স বাদ দিলেও টিনসেডের ঘর করা  দুঃসাধ্য ছিলো না। উল্লেখ্য, গাংনী উপজেলা আনসার-ভিডিপির আধা পাকা কার্যালয়ের সংস্কার ব্যয় ধরা হয়েছে ১৪ লক্ষ ১১ হাজার ৮৯০ টাকা। এনিয়ে তদন্ত কমিটির সদস্য পিআইও অফিসের উপ-সহকারী প্রকৌশলী জাকির হোসেন জানান- সাংবাদিকদের লেখনীর অভিযোগের সত্যতা মিলেছে। তদন্ত রিপোর্ট ইউএনও বরাবর দাখিল করা হয়েছে।  এ ব্যাপারে উপজেলা নির্বাহী অফিসার দিলারা রহমান সাাংবাদিকদের জানান, আমি বিষয়টি অবগত হয়েছি। অভিযোগের রিপোর্ট তদন্ত করে প্রমাণিত হলে ঠিকাদার ও প্রকৌশলীর বিরুদ্ধে ব্যবস্থা নেয়া হবে।

ফরিদপুরে বাস-মাইক্রোবাস সংঘর্ষে নিহত ৬

ঢাকা অফিস ॥ ফরিদপুর সদর উপজেলায় বাস ও মাইক্রোবাসের মুখোমুখি সংঘর্ষে এক চিকিৎসকের পরিবারের চার সদস্যসহ ছয়জনের মৃত্যু হয়েছে। গতকাল সোমবার সকাল সাড়ে ৭টার দিকে ঢাকা-খুলনা মহাসড়কে করিমপুর ব্রিজ সংলগ্ন এলাকায় এ দুর্ঘটনা ঘটে বলে হাইওয়ে পুলিশের এসআই জয়নাল আবেদীন জানান। নিহতরা হলেন- বোয়ালমারী উপজেলার ছোলনা গ্রামের ডা. শরীফুল ইসলাম হাদী, তার মেয়ে তাবাসসুম, শ্যালিকা তাকিয়া, বোনের মেয়ে তানজু, তাদের পারিবারিক বন্ধু পুলিশ উপপরিদর্শক (এসআই) ফারুক হোসেন ও মাইক্রোবাস চালক নাহিদ। দুর্ঘটনায় ডা. শরীফুলের স্ত্রী রিব্বি গুরুতর আহত হয়েছেন। তাকে ফরিদপুর মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে প্রাথমিক চিকিৎসা দিয়ে ঢাকায় পাঠানো হয়েছে। দুর্ঘটনার কারণ তদন্তে চার সদস্যের কমিটি গঠন করেছে জেলা প্রশাসন। ফরিদপুর সদর উপজেলার করিমপুর ব্রিজ সংলগ্ন এলাকায় ঢাকা-খুলনা মহাসড়কে সোমবার দুর্ঘটনাকবলিত বাস ও মাইক্রোবাস।অতিরিক্ত পুলিশ সুপার সাইফুজ্জামান জানান, মামুন পরিবহনের বাসটি খুলনার দিকে যাচ্ছিল। আর মাইক্রোবাসটি বোয়ালমারী উপজেলা থেকে যাচ্ছিল ঢাকার দিকে। “কানাইপুরের করিমপুর ব্রিজ সংলগ্ন এলাকায় দুই বাহনের মুখোমুখি সংঘর্ষ হলে ঘটনাস্থলেই মাইক্রোবাসের ছয়জনের মৃত্যু হয়।” তিনি বলেন, “গত রাত থেকে এখানে ঘন কুয়াশা, দুর্ঘটনার পিছনে এটি একটি কারণ হতে পারে।” ফরিদপুর হাইওয়ে পুলিশের সহকারী সুপারিনটেনডেন্ট মো. সিরাজুল ইসলাম বলেন, এই ঘটনায় হাইওয়ে পুলিশের কর্মকর্তা কামরুজ্জামান বাদী হয়ে একটি মামলা দায়ের করেছেন। “বাসের দ্রুতগতি এবং ঘন কুয়াশা দুর্ঘটনার কারণ হতে পারে। আমরা বাসটিকে জব্দ করেছি। তবে চালক পালিয়ে গেছে।” বোয়ালমারীর পৌর মেয়র মোজাফফর হোসেন বাবলু মিয়া বলেন, বিকালে বোয়ালমারী ছোলনা গ্রামের নিহতদের লাশ এসে পৌঁছলে শোকের ছায়া নেমে আসে। স্বজনের কান্নায় পরিবেশ ভারী হয়ে ওঠে। এলাকার শত শত মানুষ এক নজর দেখতে তাদের বাড়ি ছুটে আসেন। ফরিদপুর সদর উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা মাসুম রেজা জানান, দুর্ঘটনার খবর পেয়ে জেলা প্রশাসক অতুল সরকারসহ প্রশাসনের ঊর্ধ্বতন কর্মকর্তারা ঘটনাস্থলে ছুটে যান। এ ঘটনা তদন্তে চার সদস্যের কমিটি গঠন করা হয়েছে বলে জানান ইউএনও মাসুম রেজা। নিহত শরীফুর ইসলাম ফরিদপুর জেলা ওলামাদলের সভাপতি ছিলেন। নিহত এসআই ফারুক হোসেনের বাড়ি ফরদিপুরের আলফাডাঙ্গা উপজেলার কোঠরাকান্দি গ্রামে এবং মাইক্রোবাস চালক নাহিদের বাড়ি নড়াইলের লোহাগড়া উপজেলায়।

বিএসএমএমইউতে খালেদা জিয়ার উন্নত চিকিৎসা হচ্ছে না – ফখরুল

ঢাকা অফিস ॥ বিএনপি চেয়ারপারসন খালেদা জিয়াকে মৃত্যুর দিকে ঠেলে দেয়া হচ্ছে বলে মন্তব্য করেছেন দলটির মহাসচিব মির্জা ফখরুল ইসলাম আলমগীর। তিনি বলেন, তাকে শুধু রাজনৈতিক উদ্দেশ্যপ্রণোদিত হয়ে কারাগারে বন্দি রেখে শাস্তি দেয়া হচ্ছে। এই মুহূর্তে তার উন্নত চিকিৎসার জন্য অ্যাডভান্স সেন্টারে পাঠানো উচিত। গতকাল সোমবার বিকালে রাজধানীর নয়াপল্টনে বিএনপির কেন্দ্রীয় কার্যালয়ে এক সংবাদ সম্মেলনে খালেদা জিয়ার শারীরিক অবস্থার বিষয়ে তথ্য তুলে ধরেন তিনি। ফখরুল বলেন, বিএসএমএমইউতে খালেদা জিয়ার উন্নত চিকিৎসা হচ্ছে না। অবিলম্বে তার মুক্তি দাবি করছি। অন্যথায় কিছু হলে সবকিছুর জন্য দায়ী থাকবে সরকার। খালেদা জিয়ার পরিবারের সদস্যদের বরাত দিয়ে তিনি আরও বলেন, দেশনেত্রী গুরুতর অসুস্থ। তিনি কিছু খেতে পারছেন না। যা খাচ্ছেন তা বেরিয়ে আসছে। বিছানা থেকে দশ কদম দূরে বাথরুমে একাই যেতে পারেন না। যেতে হলে দু’জনের সাহায্য নিতে হয়। খালেদা জিয়ার সঙ্গে সাক্ষাতের জন্য অনুমতি চেয়ে স্বরাষ্ট্রমন্ত্রীর কাছে একাধিকবার চিঠি দেয়া হলেও এখনও তার জবাব পাইনি উল্লেখ করে আবারও চিঠি দেবেন বলে জানান বিএনপি মহাসচিব। এ সময় বিএনপির ভাইস-চেয়ারম্যান ড্যাবের সাবেক মহাসচিব অধ্যাপক ডা. এজেডএম জাহিদ হোসেন বলেন, খালেদা জিয়া গুরুতর অসুস্থ। তিনি এখন ক্রিপল্ড অর্থাৎ পঙ্গু হয়ে গেছেন। তিনি শুধু বিএনপির চেয়ারপারসন নন, তিনি দেশের সাবেক প্রধানমন্ত্রী, তার বয়স ৭৬। তার ডায়াবেটিস অনিয়ন্ত্রিত। তিনি বলেন, বিএসএমএমইউর মেডিকেল বোর্ড বলছে– তার অ্যাডভান্স থেরাপি দরকার। অ্যাডভান্স থেরাপি দিতে হলে এই প্রতিষ্ঠানটি কি অ্যাডভান্স প্রতিষ্ঠান? মেনে নিলাম তাদের (বিএসএমএমইউ) মধ্যে অনেক চিকিৎসক রয়েছেন, যারা সত্যি সত্যি স্বনামধন্য ও আঞ্চলিকভাবে তারা অত্যন্ত স্বীকৃত। প্রশ্ন রেখে অধ্যাপক জাহিদ হোসেন আরও বলেন, এখানে যদি অ্যাডভান্স ট্রিটমেন্ট দেয়ার সর্বাধুনিক সুযোগ থাকত; তাহলে কেন কয়েকদিন আগে আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক ওবায়দুল কাদের অসুস্থ হয়ে ভর্তি হওয়ার পরে তাকে এয়ার অ্যাম্বুলেন্সে করে ট্রান্সফার করতে হয়েছিল সিঙ্গাপুরে? তিনি বলেন, সিএমএইচ খুব ভালো, কয়েকদিন আগেও প্রধানমন্ত্রীর সামরিক সচিব জয়নুল আবেদীনকে ট্রান্সফার করতে হয়েছিল সিঙ্গাপুরে? অর্থাৎ অ্যাডভান্স ট্রিটমেন্ট দরকার অ্যাডভান্স সেন্টারে। সেই অ্যাডভান্স ট্রিটমেন্টের সুযোগ বিএসএমএমইউতে কি আছে? চিকিৎসার জন্য তাকে অ্যাডভান্স সেন্টারে নেয়া প্রয়োজন। সংবাদ সম্মেলনে আরও উপস্থিত ছিলেন- বিএনপির স্থায়ী কমিটির সদস্য ড. খন্দকার মোশাররফ হোসেন, ব্যারিস্টার মওদুদ আহমদ, মির্জা আব্বাস, গয়েশ্বর চন্দ্র রায়, নজরুল ইসলাম খান, ড. আবদুল মঈন খান, আমীর খসরু মাহমুদ চৌধুরী, ইকবাল হাসান মাহমুদ টুকু, সিনিয়র যুগ্ম-মহাসচিব রুহুল কবির রিজভী, যুগ্ম-মহাসচিব খায়রুল কবির খোকন প্রমুখ।

এটা কেমন লেভেল প্লেয়িং ফিল্ড – তোফায়েল

ঢাকা অফিস ॥ বিএনপির নেতারা ঢাকা সিটি করপোরেশন নির্বাচনে দল সমর্থিত প্রার্থীদের পক্ষে নির্বাচনী প্রচারে থাকতে পারলে ক্ষমতাসীন দলের এমপি-মন্ত্রীরা কেন পারবেন না, তা নিয়ে প্রশ্ন তুলেছেন আওয়ামী লীগের উপদেষ্টা পরিষদের সদস্য তোফায়েল আহমেদ। বিষয়টি নিয়ে কথা বলতে নির্বাচন কমিশনে যাবেন বলে জানিয়েছেন তিনি। সোমবার বনানীতে ঢাকা উত্তর সিটি করপোরেশন নির্বাচনে আওয়ামী লীগ মনোনীত মেয়র প্রার্থী মো. আতিকুল ইসলামের নির্বাচনী কার্যালয়ে এসে তিনি বলেন, “বিএনপির ব্যারিস্টার মওদুদ আহমদসহ অন্য শীর্ষ নেতারা মেয়র প্রার্থীদের প্রচারণায় অংশ নিতে পারলেও আওয়ামী লীগের এমপিরা পারবেন না, এটা হতে পারে না। “মওদুদ এমপি নন, তিনি মিটিং করতে পারবেন, বক্তৃতা দিতে পারবেন তাতে কোনো বাধা নেই। আর আমরা এমপি, আমরা মিটিং করতে পারব না সেটা তো হয় না। তারা বলে লেভেল প্লেয়িং ফিল্ড, এটা কোন ধরনের লেভেল প্লেয়িং ফিল্ড হল?” সাবেক মন্ত্রী তোফায়েল বলেন, “তারা নির্বাচনে পরাজিত হয়েছে, সাবেক মন্ত্রী-এমপি। তারা যেতে পারবে, আমরা যেতে পারব না এটা তো হতে পারে না। এজন্য আমরা সিদ্ধান্ত নিয়েছি আগামীকাল আমরা নির্বাচন কমিশনে যাব।” ঢাকা সিটি করপোরেশন নির্বাচন কোনোভাবেই বির্তকিত হতে দেওয়া হবে না বলেও জানিয়েছেন আওয়ামী লীগের বর্ষীয়ান এই নেতা। “আমরা এই নির্বাচনটাকে সাংঘাতিক গুরুত্বসহকারে নিয়েছি। আমরা এ নির্বাচনকে কোনোভাবেই বিতর্কিত করব না, কোনোভাবেই না। ঢাকা শহরের মানুষ দেখবে একটা অবাধ নির্বাচন ঢাকা শহরে হয়েছে। আমরা সমস্ত শক্তি দিয়ে বিজয়ী হওয়ার চেষ্টা করব।” নির্বাচন নিয়ে বিএনপি নেতাদের বক্তব্যের সমালোচনা করে তোফায়েল বলেন, “একটা দল নির্বাচনে নেমেছে হতাশা নিয়ে। আপনারা যদি তাদের মুখের দিকে তাকান তাহলে দেখবেন তারা হতাশ। তারা বলে ‘আমরা জানি এই নির্বাচনে জিততে দেবে না, সুষ্ঠু হবে না, তবুও আন্দোলনের অংশ হিসেবে এই নির্বাচনে অংশ নিয়েছি’। এই বক্তব্যের মাধ্যমে তারা ইতিমধ্যেই পরাজয় বরণ করে নিয়েছে। তারা একের পর এক অহেতুক অভিযোগ করেন। তাদের দলের নাম বাংলাদেশ নেগেটিভ পার্টি হওয়া উচিত। অহেতুক মিথ্যা প্রচার করে নির্বাচনকে কলঙ্কিত না করতে বিএনপির প্রতি আহ্বান জানান তিনি। নির্বাচনের বস্তুনিষ্ঠ সংবাদ পরিবেশন করতে সাংবাদিকদের প্রতি আহ্বানও জানান তোফায়েল আহমেদ। আওয়ামী লীগের উপদেষ্টাম-লীর সদস্য শেখ ফজলুল করিম সেলিম, যুগ্ম সাধারণ সম্পাদক মাহবুব-উল আলম হানিফ, মির্জা আজম, আবদুস সোবহান গোলাপ, অসীম কুমার উকিল, খালিদ মাহমুদ চৌধুরী প্রমুখ এসময় সেখানে উপস্থিত ছিলেন। ঢাকার দুই সিটি করপোরেশনের নির্বাচন পরিচালনায় বর্ষীয়ান নেতা আমির হোসেন আমু ও তোফায়েল আহমেদকে দায়িত্ব দিয়েছে আওয়ামী লীগ। উপদেষ্টা পরিষদের সদস্য আমু ঢাকা দক্ষিণ ও তোফায়েল ঢাকা উত্তরের নির্বাচন পরিচালনা কমিটির নেতৃত্বে রয়েছেন।

আলমডাঙ্গায় ধুমধাম আয়োজনে বাল্য বিবাহ

কনের পিতাকে ৫ হাজার জরিমানা

আলমডাঙ্গা অফিস ॥ আলমডাঙ্গায় নবম শ্রেণীর ছাত্রীর বাল্য বিবাহ অনুষ্ঠান পন্ড করে দিলো উপজেলা প্রশাসন। গতকাল সোমবার দুপুরে এ বিয়ের আয়োজনের অপরাধে কনের পিতাকে ৫ হাজার জরিমানা করেছে। এসময় উপস্থিত ছিলেন উপজেলা সহকারী কমিশনার (ভূমি) সিমা শারমিন, থানার অফিসার ইনচার্জ সৈয়দ আশিকুর রহমান, এসআই গোলাম মোস্তফাসহ সঙ্গীয় ফোর্স।  এলাকাসূত্রে জানাযায়, আলমডাঙ্গা উপজেলার বেলগাছী ইউনিয়নের ডামোশ গ্রামের আরমান হোসেনের নাবালীকা মেয়ে আলেয়া খাতুন (১৫) এরশাদপুর একাডেমি মাধ্যমিক বিদ্যালয়ের নবম শ্রেণির ছাত্রী। গত বছর জেএসসি পরীক্ষায় উত্তীর্ণ হয়ে এবার নবম শ্রেণীতে ভর্তি হয়। ইতোমধ্যে আলমডাঙ্গার ডামোশ গ্রামে বাল্যবিবাহ নিরোধ কমিটি গঠন করে গ্রামের কিছু উঠতি বয়সী স্কুল ছাত্রীরা। বাল্য বিবাহে শিকার স্কুল ছাত্রী ওই বাল্য বিবাহ নিরোধ কমিটির সদস্য। স্থানীয় ইউনিয়ন আ.লীগের সাধারণ সম্পাদকের ভাই শাহিন তার নেতাকর্মীরা জোরপূর্বক স্কুল ছাত্রীর বিয়ে দিবে বলে ফুঁসলে তোলে ছাত্রীর পিতাকে। আলমডাঙ্গার খাদেমপুর ইউনিয়নের রংপুর গ্রামের রনি (২৬) দীর্ঘদিন যাবৎ ইউনিয়ন আ.লীগের সাধারণ সম্পাদকের মাছের খামার দেখা শোনা করেন। এরই সূত্র ধরে আরমানের নাবালীকা মেয়ে আলেয়ার সাথে রংপুর গ্রামের রনির সাথে আনুষ্ঠানিকতার মাধ্যমে বিবাহ আয়োজন করে।

এরই সংবাদের ভিত্তিতে স্থানীয় কয়েকজন সাংবাদিক রবিবার সন্ধ্যায় ওই বাল্য বিবাহ বাড়ি উপস্থিত হয়ে নাবালীকার জন্মনিবন্ধন ও স্কুল সার্টিফিকেট দেখতে চাইলে ইউনিয়ন আ.লীগের সাধারণ সম্পাদকের ভাই শাহিন ও তার লোকজন সাংবাদিকদের বিভিন্ন সামাজিকভাবে হেউ প্রতিপন্ন করে। এলাকার লোকজনতার সামনে দম্ভক্তি দেখিয়ে বলে, পুলিশ এসে দেখি কি ভাবে বিবাহ বন্ধ করে।

এদিকে, ইউনিয়ন আ.লীগের সাধারণ সম্পাদক মাহমুদুল হাসান চঞ্চল ইমোতে ওমরা হজপালনরত অবস্থায় সাংবাদিকদের সাথে অশ্লীলভাবে আচরণ করেন। এই ঘটনার পরই স্থানীয় সাংবাদিকেরা নারী ও শিশু নির্যাতন ও বাল্য বিবাহ প্রতিরোধ আইন মন্ত্রানালয়ে, আলমডাঙ্গা উপজেলা নির্বাহী অফিসার লিটন আলী, সহকারী কমিশনার (ভূমি), আলমডাঙ্গা থানার অফিসার ইনচার্জ সৈয়দ আশিকুর রহমানকে বাল্য বিবাহের বিষয়টি অবগত করেন। বাল্য বিবাহের ঘটনায় এরশাদপুর একাডেমির প্রধান শিক্ষক সামিম হোসেন বলেন, আমরা সরাসরি বিবাহ ভাঙতে পারি না। আমরা সকল শিক্ষকই বাল্য বিবাহ না দেয়ার পক্ষে। তিনি নিশ্চিত করেন, আলেয়া খাতুন এরশাদপুর স্কুলের ৯ম শ্রেণীর ছাত্রী। এই ঘটনায় আলমডাঙ্গা থানার অফিসার ইনচার্জ সৈয়দ আশিকুর রহমান জানান,‘ঘটনাস্থলে পুলিশ গিয়ে বিবাহ পন্ড করে দিয়েছে। কেউ বলছে ৩ মাস পূর্বে বিবাহ হয়ে গেছে। কিন্তু অল্প বয়সে বিবাহ দেওয়া হয়েছে তার কাগজপত্র পাইনি। যে কাজি বিবাহ পড়েছে তাকে পুলিশ খুঁজছে। আলমডাঙ্গা উপজেলা সহকারী কমিশনার (ভূমি) সিমা শারমিন বলেন,‘ গোপন সংবাদের ভিত্তিতে খবর  পেয়ে বাল্য বিয়েটি বন্ধ করা হয়েছে। পরিবারের সদস্যদের বাল্য বিয়ের কূফল সম্পর্কে অবগত করা হয়। পরে উভয় পক্ষের অভিভাবকরা কিশোরীর বিয়ের বয়স ১৮ না হওয়ার আগে বিয়ে দিবে না বলে মুচলেকা প্রদান করেন। বাল্যবিবাহ নিরোধ আইন ১৯২৯ সনের ৬ এর ১ ধারায় কনের বাবাকে নগদ পাঁচ হাজার টাকা জরিমানা করা হয়েছে ।

গাংনীতে রাস্তায় চলাচলে বাঁধা সৃষ্টির অপরাধে ৫ জনের অর্থদন্ড

গাংনী প্রতিনিধি ॥ মেহেরপুরের গাংনী উপজেলার পুরাতন মটমুড়া গ্রামের ডোবার মাঠ নামক স্থান থেকে মাটি কেটে গাড়ি করে বহনের সময় রাস্তায় স্বাভাবিক চলাচলে বাঁধা সৃষ্টি করার অপরাধে ৫জনকে অর্থদন্ড করা হয়েছে। দন্ডপ্রাপ্তরা হলেন-পুরাতন মটমুড়া গ্রামের হাদীপাড়ার মৃত জোয়াদ আলীর ছেলে জমির মালিক রিয়াতুল্লাহ, পার্শ্ববতি হোগলবাড়িয়া গ্রামের হানিফ আলীর ছেলে মাটি বহনকারি গাড়ীর মালিক রাশিদুল ইসলাম, একই গ্রামের রুহুল আমিনের ছেলে গাড়ির চালক রকি আলী,  আলম হোসেনের ছেলে মাটিকাটা শ্রমিক রানা আহম্মেদ ও আসমত আলীর ছেলে শ্রমিক আশরাফ উদ্দীন। গতকাল সোমবার সকালের দিকে ভ্রাম্যমাণ আদালতের মাধ্যমে ৫ জনকে অর্থদন্ড করা হয়। ভ্রাম্যমাণ আদালত পরিচালনা করেন ভ্রাম্যমাণ আদালতের নির্বাহী ম্যাজিস্ট্রেট ও গাংনী উপজেলা সহকারী কমিশনার (ভূমি) ইয়ানুর রহমান। ভ্রাম্যমাণ আদালত সূত্রে জানা যায়, সোমবার সকালের দিকে গাংনী উপজেলার পুরাতন মটমুড়া গ্রামের রিয়াজতুল্লাহের জমি থেকে মাটি কেটে একটি গাড়ি যোগে ওই গ্রামের একটি রাস্তা দিয়ে অন্যত্র নিয়ে যাচ্ছিল বেশ কয়েকজন। তাদের ব্যবহৃত ওই গাড়ি থেকে মাটি ছিটিয়ে রাস্তা নোংরা ও মানুষ ও যানবাহন স্বাভাবিক চলাচলে বিঘœ ঘটাচ্ছিল। ভ্রাম্যমাণ আদালতের একটি দল ওই স্থানে অভিযান পরিচালনা করে। এ সময় ভ্রাম্যমাণ আদালত বসিয়ে গণউপদ্রব আইন ১৩৩-এর দন্ডবিধির ২৯১ ধারায় জমির মালিককে ১০ হাজার টাকা, মাটি বহনকারি গাড়ীর মালিককে ২ হাজার টাকা ও তিনজন শ্রমিককের প্রত্যেককে ১ হাজার টাকা করে জরিমানা করা হয়।

ব্যবসায়ীরা যা ইচ্ছা তাই করছে – রাষ্ট্রপতি

ঢাকা অফিস ॥ ভরা মৌসুমে পেঁয়াজের দাম আবারও বেড়ে যাওয়ায় ক্ষোভ প্রকাশ করে রাষ্ট্রপতি মো. আবদুল হামিদ বলেছেন, ব্যবসায়ীরা যা ইচ্ছা তাই করছে। গতকাল সোমবার বাংলাদেশ ইউনিভার্সিটি অব প্রফেশনালসের (বিইউপি) পঞ্চম সমাবর্তনে রাষ্ট্রপতি বলেন, “সবকিছু পথে আনতে হবে। ক’দিন আগে পেঁয়াজের দাম বেড়েছে। মাঝে কমেছে, আবার বাড়ছে। ব্যবসায়ীরা কীৃ এটা আমি বুঝি না। যা ইচ্ছা তাই করে যাচ্ছে। এটা তো হতে পারে না।” পেঁয়াজের দাম বাড়ায় গত নভেম্বর মাসে ব্র্যাক বিশ্ববিদ্যালয়ের সমাবর্তনেও অসন্তোষ প্রকাশ করেছিলেন রাষ্ট্রপতি।  গত সেপ্টেম্বরে ভারত পেঁয়াজ রপ্তানি বন্ধ করার পর বাংলাদেশের বাজারে ৩০-৪০ টাকার এই পণ্যের দাম বাড়তে বাড়তে আড়াইশ টাকায় ওঠে। পেঁয়াজের অস্বাভাবিক দামের কারণে সরকারের সমালোচনায় সোচ্চার হয়েছেন অনেকে, বাণিজ্যমন্ত্রী টিপু মুন্সির পদত্যাগও চেয়েছেন কেউ কেউ। এরপর বিভিন্ন দেশ থেকে আমদানির পাশাপাশি বাজারে দেশি নতুন পেঁয়াজ ওঠায় দাম কমতে থাকে। ডিসেম্বরের শেষার্ধে দেশি নতুন পেঁয়াজের দাম ১০০ টাকার আশপাশে আসলেও সম্প্রতি আবার বেড়ে তা ১৮০ টাকায় উঠে যায়। শিক্ষার্থীদের এই অবস্থা উত্তরণে ভূমিকা রাখার আহ্বান জানিয়ে আবদুল হামিদ বলেন, “এখানেও মনে হয় তোমাদের ভূমিকা থাকতে পারে। ছাত্ররা ইচ্ছা করলে কি না পারে। ছাত্ররা যদি মনে করে বাংলাদেশে ডিসিপ্লিন আসবে তাহলে মনে হয় পারবে।” যত্রতত্র আবর্জনা ফেলা বন্ধে ছাত্রদের প্রচার চালানোর আহ্বানও জানান রাষ্ট্রপতি। “ক্যান্টমেন্টের ভিতরের যে পরিবেশ, পরিচ্ছন্নতা। এর বাইরে যে কী একটা অবস্থা সেটা বলার দরকার নেই। একই দেশ, একই ঢাকা শহর। ক্যান্টনমেন্টের ভিতরে যদি এত পরিষ্কার-পরিচ্ছন্ন থাকতে পারেৃএকটা গাড়ি ঢুকলে সিগন্যাল ক্রস করে কেউ যায় না। বেল্ট ঠিকমত বাঁধে। অযথা হর্ন বাজায় না। বাইরে গেলেই তখন দেখা যায় কোনো নিয়মকানুন নেই। মারাত্মক অবস্থার সৃষ্টি হয়।” শিক্ষার্থীদের উদ্দেশে তিনি বলেন, “তোমরা যখন বোতলে পানি খাও সেটা ক্যান্টনমেন্টের ভিতরে ফেলো না। এর বাইরে গেলেই ছুঁড়ে ফেলছ। বিদেশে গেলে স্টেশনে থুথু ফেলার সাহস পায় না। টিস্যু পেপারে থুথু ফেলে পকেটে রাখে, পরে ডাস্টবিনে ফেলে। আর আমাদের এখানে কোথায় ওয়ালে পড়ল, না কারও শরীরে পড়লৃএই অবস্থা। এই নেচার পরিবর্তন করতে হবে। রাস্তাঘাট এমন অপরিষ্কার থাকে, মারাত্মক অবস্থা। প্রত্যেকটি ক্ষেত্রেই এই অবস্থা। “সমস্ত বিশ্ববিদ্যালয়ের ছাত্র, সারা বাংলাদেশের স্কুল-কলেজ-মাদ্রাসার ছাত্র যারা আছে তারা যদি একটা ক্যাম্পেইন কর, মানুষকে বলো, যেখানে সেখানে আবর্জনা ফেলা যাবে না। এটা করতে পারলে আমার মনে হয় বাংলাদেশ একটা ডিসিপ্লিনে আনতে পারব। না হলে বাংলাদেশ একটা ডাস্টবিন মনে করে চলছি।” কর্মভিত্তিক শিক্ষার প্রতি জোর দিয়ে দেশের বিশ্ববিদ্যালয়গুলোর আচার্য আবদুল হামিদ বলেন, “প্রতিযোগিতামূলক বিশ্বে টিকে থাকার জন্য নিজেদের আরও যোগ্য করে তৈরির গুরুত্ব দিনদিন বেড়েই চলেছে। তাই জ্ঞান-বিজ্ঞানের সকল ক্ষত্রে বিশ্ব প্রতিদ্বন্দ্বিতা মোকাবেলায় আমাদের শিক্ষার্থীদের পেশাভিত্তিক শিক্ষায় শিক্ষিত করে তুলতে হবে। শ্রমবাজারের সাথে সামঞ্জস্য রেখে শিক্ষা কার্যক্রম প্রণয়ন করতে হবে। এ যুগে চাহিদা ও কর্মভিত্তিক শিক্ষার কোনো বিকল্প নেই। “একবিংশ শতাব্দী আমাদের জাতীয় ও আন্তর্জাতিক ক্ষেত্রে নানা চ্যালেঞ্জ ছুঁড়ে দিয়েছে। আমরা আজ তীব্র প্রতিযোগিতার সম্মুখীন। এ প্রতিযোগিতায় টিকে থাকতে দক্ষতার বিকল্প নেই। আমাদের তরুণ প্রজন্মকে জ্ঞান-বিজ্ঞান ও তথ্য-প্রযুক্তিতে দক্ষ করে গড়ে তুলতে উদ্যোগ নিতে হবে। এজন্য প্রাথমিক স্তর থেকে উচ্চতর স্তরে মানবিক ও ব্যবসায় শিক্ষার পাশাপাশি বিজ্ঞান শিক্ষার উপর গুরুত্বারোপ করা অত্যন্ত জরুরি।” সমাবর্তনে ৩৪ জন শিক্ষার্থীকে শিক্ষা জীবনে কৃতিত্বপূর্ণ অবদানের জন্য স্বর্ণপদক দেওয়া হয়। অনুষ্ঠানে সমাবর্তন বক্তা ছিলেন জাতীয় অধ্যাপক ড. আনিসুজ্জামান। উপস্থিত ছিলেন শিক্ষামন্ত্রী দীপু মনি, বিইউপির উপাচার্য মেজর জেনারেল মো. এমদাদ উল বারী। প্রধানমন্ত্রীর নিরাপত্তা বিষয়ক উপদেষ্টা মেজর জেনারেল (অব.) তারিক আহমেদ সিদ্দিক, ও তিনবাহিনীর প্রধান উপস্থিত ছিলেন।

দৌলতপুরে অস্ত্র, গুলি ও মাদকসহ আটক-১

দৌলতপুর প্রতিনিধি ॥ কুষ্টিয়ার দৌলতপুরে অস্ত্র, গুলি ও মাদকসহ জাহিদুল ইসলাম জাদু নামে একজন আটক হয়েছে। রবিবার দিবাগত রাত ১টার দিকে উপজেলার ফারাকপুর পশ্চিমপাড়া গ্রামের সিদ্দিক মন্ডলের বাড়ি থেকে তাকে আটক করে দৌলতপুর থানা পুলিশ। দৌলতপুর থানার সেকেন্ড অফিসার উপ-পরিদর্শক রাজিব জানান, সিদ্দিক মন্ডলের বাড়িতে মাদক ও অস্ত্রসহ অবস্থানের গোপন সংবাদ পেয়ে দৌলতপুর থানা পুলিশ অভিযান চালায়। পুলিশের উপস্থিতি টের পেয়ে জাহিদুল ইসলাম জাদু পালানোর চেষ্টা করলে পুলিশ ১টি দেশীয় তৈরী ওয়ান শুটার গান, ৩ রাউন্ড গুলি ও ৮০ পিস ইয়াবাসহ জাহিদুল ইসলাম জাদুকে আটক করে। আটক জাদু ফারাকপুর গ্রামের মৃত আজের প্রামানিকের ছেলে এবং তার বিরুদ্ধে দৌলতপুর থানায় একাধিক মামলা রয়েছে। এ ঘটনায় দৌলতপুর থানায় মামলা হলে জিজ্ঞাসাবাদ শেষে গতকাল সোমবার দুপুরে আটক জাদুকে আদালতে সোপর্দ করা হয়।

দৌলতপুরে এতিমদের মাঝে কম্বল বিতরণ

দৌলতপুর প্রতিনিধি ॥ ইউনাইটেড কমার্শিয়াল ব্যাংক (ইউসিবি) কুষ্টিয়া শাখার উদ্যোগে কুষ্টিয়ার দৌলতপুরের তারাগুনিয়া হাফেজিয়া মাদ্রাসায় এতিমদের মাঝে কম্বল বিতরণ করা হয়েছে। গতকাল সোমবার বেলা ১১ টায় ব্যাংকের কুষ্টিয়া শাখার ব্যবস্থাপক মুঞ্জুরুল ইসলাম মাদ্রাসার এতিমদের হাতে কম্বল তুলে দেন। এসময় মাদ্রাসা পরিচালনা কমিটির সভাপতি উপাধ্যক্ষ আবু সাঈদ মো. আজমল হোসেন, মাদ্রাসার মুহ্তামিম মাওলানা মো. ফারুক হোসেন, মাদ্রাসার হাফেজ আব্দুল মাজেদসহ অন্যান্য শিক্ষকগন উপস্থিত ছিলেন। এছাড়াও কুষ্টিয়ার বিভিন্ন এতিমখানা, মাদ্রাসা, রেল স্টেশন ও দুস্থদের মাঝে ইউনাইটেড কমার্শিয়াল ব্যাংক (ইউসিবি) কুষ্টিয়া শাখার উদ্যোগে কম্বল বিতরন করা হয়। ইউনাইটেড কমার্শিয়াল ব্যাংকের (ইউসিবি) কুষ্টিয়া শাখার ব্যবস্থাপক মুঞ্জুরুল ইসলাম বলেন- অসহায় মানুষদের পাশে ইউসিবি ব্যাংক সব সময় ছিল এবং ভবিষ্যতেও থাকবে। কুষ্টিয়ার বেশ কিছু এতিমখানা ও মাদ্রাসার শিক্ষার্থীদের মাঝে কুষ্টিয়া শাখার উদ্যোগে কম্বল বিতরণ করা হয়েছে। এছাড়াও শীতার্ত পথশিশু ও দুস্থ্যদের মাঝে কম্বল বিতরন করা হয়।

ঝিনাইদহে ২ দিনব্যাপী শিশুমেলার উদ্বোধন

ঝিনাইদহ প্রতিনিধি ॥ ঝিনাইদহে ২ দিনব্যাপী শিশুমেলার উদ্বোধন করা হয়েছে। জেলা তথ্য অফিসের আয়োজনে এ উপলক্ষে সোমবার সকালে শহরের পুরাতন ডিসি কোর্ট চত্বর থেকে একটি র‌্যালি বের করা হয়। র‌্যালিটি শহরের বিভিন্ন সড়ক ঘুরে একই স্থানে এসে শেষ হয়। পরে সেখানে বেলুন উড়িয়ে মেলার উদ্বোধন করা হয়। পরে পুরাতন ডিসি কোর্ট মুক্তমঞ্চে আলোচনা সভা অনুষ্ঠিত হয়। জেলা প্রশাসক সরোজ কুমার নাথ এর সভাপতিত্বে অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথি ছিলেন জেলা আওয়ামী লীগের সভাপতি ও ঝিনাইদহ-১ আসনের সংসদ সদস্য আব্দুল হাই। বিশেষ অতিথি ছিলেন সংরক্ষিত নারী আসনের সংসদ সদস্য খালেদা খানম, অতিরিক্ত পুলিশ সুপার (সদর সার্কেল) আবুল বাসার। অনুষ্ঠানে স্বাগত বক্তব্য রাখেন জেলা তথ্য অফিসার আবু বকর সিদ্দীক। তথ্য মন্ত্রণালয়ের গণযোগাযোগ অধিদপ্তরের ‘নারী ও শিশু উন্নয়নে সচেতনতামুলক যোগাযোগ কার্যক্রম’ কর্মসূচির আওতায় ২ দিনব্যাপী এ শিশু মেলায় বিভিন্ন শিক্ষা প্রতিষ্ঠান ও সরকারি দপ্তরের ১৬টি স্টলে শিক্ষাউপকরণ প্রদর্শণ করা হচ্ছে।

কুষ্টিয়া জেলা সমিতি ইউএসএ ইনক্ এর উদ্যোগ

 বীর মুক্তিযোদ্ধা শাহ আলম, মুক্তিযোদ্ধা কমান্ডার নাসিম উদ্দিন, দিদার হোসেন ও আব্দুল সুবহান স্মরণে  আলোচনা ও দোয়া মাহফিল অনুষ্ঠিত

বিশেষ প্রতিনিধি ॥ নিউইয়র্কে বসবাসরত অবস্থায় কুষ্টিয়ার কৃতিসন্তান বীর মুক্তিযোদ্ধা শাহ আলম, মুক্তিযোদ্ধা কমান্ডার নাসিম উদ্দিন, দিদার হোসেন ও আব্দুল সুবহান মৃত্যুবরণ করেন। তাঁদের স্মরণে  আলোচনা সভা ও দোয়া মাহফিল করেছে কুষ্টিয়া জেলা সমিতি ইউএসএ ইনক্। স্থানীয় সময় গত ৫ জানুয়ারি রবিবার বাদ মাগরিব নিউইয়র্কের জেকশন হাইটস হাটবাজার পার্টি আলোচনা ও দোয়া মাহফিল অনুষ্ঠিত হয়। কুষ্টিয়া জেলা সমিতি ইউ এস এ ইনক্ এর সভাপতি আবু মুসার সভাপতিত্বে এবং সাধারণ সম্পাদক মোঃ আসাদুজ্জামানের পরিচালনায় অনুষ্ঠানে অতিথি হিসেবে উপস্থিত ছিলেন ব্রনস কমিউনিটি বোর্ডের প্রথম ভাইস  চেয়ারম্যান আইনজীবী মোহাম্মদ এন মজুমদার, মুক্তিযোদ্ধা কমান্ডার ফোরাম ৭১ সভাপতি বীর মুক্তিযোদ্ধা রাশেদ আহম্মেদ, বীর মুক্তিযোদ্ধা লাভলু আনছার, খান শওকত, ইউএস এম্বাসী কর্মকর্তা মোস্তফা কামাল মুকুল, ইঞ্জিনিয়ার জাহিদ হোসেন ।

এছাড়াও আলোচনা সভা ও দোয়া মাহফিলে অন্যান্যের মধ্যে উপস্থিত ছিলেন উপদেষ্টা মন্ডলীর সদস্য নাজমুল আহসান দুলাল, খন্দকার জামিরুল ইসলাম, রফিক আহম্মেদ মিলু, মাহবুবুল আলম চাঁদ, সাজেজুল ইসলাম সুজন, আব্দুর রহমান, সাবেক সভাপতি মোঃ গিয়াস উদ্দিন, সহ-সভাপতি কাজী পারভেজ বাবু, যুগ্ম সাধারণ সম্পাদক আশরাফুল আলম, মুনসুর আলম মুন্না, পাভেল সাদেক রহমান, সাবেক সাংগঠনিক সম্পাদক জগলুল হক শাহীন, মহিলা বিষয়ক সম্পাদিকা আম্বিয়া অন্তরা, অর্থ সম্পাদক আলমগীর হোসেন,  সহ-সাংগঠনিক সম্পাদক মোঃ জিয়াউর রহমান, ক্রীড়া ও সাংস্কৃতিক সম্পাদক আবদুল্লাহ যোবায়ের, সহ-ক্রীড়া ও সাংস্কৃতিক সম্পাদক মিজানুর রহমান, দপ্তর সম্পাদক মোঃ ইকবাল হোসেন সঞ্চয়, শাহিন আলম, সমাজ কল্যাণ সম্পাদক মন্জুর কাদের ও সম্মানিত অতিথিবৃন্দ । অনুষ্ঠানটির ১ম পর্বে আলোচনা ও ২য় পর্বে দোয়া মাহফিল অনুষ্ঠিত হয় । আলোচনা পর্বে শুভেচ্ছা বক্তব্য রাখেন যুগ্ম সাধারণ সম্পাদক আশরাফুল আলম, পরিবারের পক্ষ থেকে বক্তব্য রাখেন সম্মানিত উপদেষ্টা নাজমুল আহসান, মোঃ চপল, সাবেক সিনিয়র সহ-সভাপতি ফারুক ইকবাল, সাবেক যুগ্ম সম্পাদক পাভেল সাদিক , সাবেক সাংগঠনিক সম্পাদক জগলুল হক শাহীন, উপদেষ্টা খন্দকার জামিরুল ইসলাম ,সহ সভাপতি কাজি আক্তার পারভেজ বাবু, মোঃ গিয়াস উদ্দিন। এছাড়া অতিথিদের মধ্যে বক্তব্য রাখেন মুক্তিযোদ্ধা ফোরাম ৭১ এর সভাপতি বীর মুক্তিযোদ্ধা রাশেদ আহম্মেদ, বীর মুক্তিযোদ্ধা লাভলু আনছার, কমিউনিটি একটিভিস্ট খান শওকত। আলোচনা পর্বের পর দোয়া মাহফিল পরিচালনা করেন মাওলানা আলি আয়্যুব ও মাওলানা ফায়েক হোসেন।  দোয়া মাহফিলে মরহুম শাহ আলম, নাসিম উদ্দিন আহম্মেদ, দিদার হোসেন ও আব্দুল সুবহানসহ সকলের জন্য দোয়া করা হয়।

 

ইবি ল্যাবরেটরী স্কুল এন্ড কলেজের ৫তলা ভবনের নির্মাণ কাজ উদ্বোধন

ইসলামী বিশ্ববিদ্যালয়ের ল্যাবরেটরী স্কুল এন্ড কলেজের নতুন ৫তলা ভবন ও মূল ভবনের উর্দ্ধমুখি সম্প্রসারণের নির্মাণ কাজ উদ্বোধন করা হয়েছে। গতকাল সোমবার সকালে বিদ্যালয় চত্বরে এ নির্মাণ কাজের আনুষ্ঠানিক উদ্বোধন করেন ভাইস চ্যান্সেলর প্রফেসর ড. মোঃ হারুন-উর-রশিদ আসকারী (ড. রাশিদ আসকারী)। উদ্বোধনী অনুষ্ঠান পূর্ব আলোচনা সভায় প্রধান অতিথির বক্তব্য রাখেন ভাইস চ্যান্সেলর প্রফেসর ড. মোঃ হারুন-উর-রশিদ আসকারী (ড. রাশিদ আসকারী)। বিশেষ অতিথি ছিলেন প্রো-ভাইস চ্যান্সেলর প্রফেসর ড. মোঃ শাহিনুর রহমান ও ট্রেজারার প্রফেসর ড. মোঃ সেলিম তোহা। পরিকল্পনা ও উন্নয়ন অফিসের পরিচালক (ভার:) এইচ, এম, আলী হাসান’র পরিচালনায় অনুষ্ঠানে বক্তব্য রাখেন আইআইইআর’র পরিচালক ও বিদ্যালয় পরিচালনা কমিটির সভাপতি প্রফেসর ড. মোহাঃ মেহের আলী এবং প্রধান প্রকৌশলী (ভার:) আলিমুজ্জামান টুটুল। উদ্বোধনী অনুষ্ঠানে উপস্থিত ছিলেন সিন্ডিকেট সদস্য প্রফেসর ড. মোঃ মাহবুবর রহমান, রেজিস্ট্রার (ভার:) এস এম আব্দুল লতিফসহ বিভিন্ন পর্যায়ের শিক্ষক, কর্মকর্তা এবং বিদ্যালয়ের শিক্ষক ও শিক্ষার্থীবৃন্দ। মেগা প্রকল্পের আওতায় এ নির্মাণ কাজের ব্যয় ধরা হয়েছে ৭ কোটি ৪২ লাখ টাকা। আগামী ২ বছরের মধ্যে এ নির্মান কাজ শেষ হবে বলে আশা প্রকাশ করেছেন কর্তৃপক্ষ। সংবাদ বিজ্ঞপ্তি

আওয়ামী লীগ নিরপেক্ষ ও সুষ্ঠু নির্বাচন চায় – ওবায়দুল কাদের

ঢাকা অফিস ॥ ইভিএম পদ্ধতিতে ভোটগ্রহণ নিয়ে বিভ্রান্তি না ছড়াতে বিএনপির প্রতি আহ্বান জানিয়েছেন আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক এবং সড়ক পরিবহন ও সেতুমন্ত্রী ওবায়দুল কাদের। তিনি বলেন, আওয়ামী লীগ নিরপেক্ষ ও সুষ্ঠু নির্বাচন চায়, হেরে গেলে আমাদের মাথায় আকাশ ভেঙে পড়বে না। তবে বিএনপির নিশ্চিত পরাজয়ের মুখে ইভিএম এর বিররুদ্ধে আবোল-তাবোল বক্তব্য দিয়ে জনগণকে বিভ্রান্ত করছে। ওবায়দুল কাদের গতকাল সোমবার সাভার উপজেলা পরিষদ মাঠ প্রাঙ্গনে আওয়ামী লীগের পক্ষ থেকে শীতার্ত মানুষের মধ্যে কম্বল, শুকনো খাবার, শিশুখাদ্য ও শিশুবস্ত্র বিতরণ অনুষ্ঠানে এসব কথা বলেন। আওয়ামী লীগ ঢাকার দুই সিটির নির্বাচন অবাধ সুষ্ঠু ও নিরপেক্ষ দেখতে চায় জানিয়ে ওবায়দুল কাদের বলেন, আমরা অবাধ,সুষ্ঠু ও নিরপেক্ষ ভোট চাই। নিরপেক্ষ নির্বাচনের জন্য আমরা নির্বাচন কমিশনকে সবধরণের সহায়তা করবো। বিএনপি নির্বাচনের আগেই কারচুপির অভিযোগ করছে। আসন্ন সিটি করপোরেশন নির্বাচনে আওয়ামী লীগের প্রার্থীর পক্ষে ভোট প্রার্থনা করে তিনি বলেন, নৌকায় ভোট দিলে দেশের উন্নয়ন হবে। গরিব মানুষ কষ্ট পাবে না। এই লক্ষ্য আমরা জনগণের সমর্থন চাই। আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক বলেন, সারাদেশে একজন মানুষও যাতে শীতে কষ্ট না পায়, কেউ যেন শীতে মৃত্যুবরণ না করে, সে জন্য দলীয়ভাবে শীতবস্ত্র বিতরণ করা হচ্ছে। তিনি বলেন, সরকার ইতিমধ্যে ৪০ লাখ কম্বল ও ২ কোটি নগদ অর্থ, শিশুদের জন্য শীতবস্ত্র ও শুকনো খাবার বিতরণ করেছে। শিশু ও বয়স্কসহ কোনো মানুষ যাতে শীতে কষ্ট না পায়, সে জন্য এ প্রক্রিয়া অব্যাহত থাকবে। সাভার উপজেলা আওয়ামী লীগের সভাপতি হাসিনা দৌলার সভাপতিত্বে ত্রাণ ও দুর্যোগ ব্যবস্থাপনা প্রতিমন্ত্রী ডা. এনামুর রহমান, আওয়ামী লীগের ত্রাণ ও সমাজকল্যাণ বিষয়ক সম্পাদক সুজিত রায় নন্দী, ঢাকা জেলা আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক ও ঢাকা জেলা পরিষদের চেয়ারম্যান মাহাবুবুর রহমান, উপজেলা পরিষদের চেয়ারম্যান মঞ্জরুল আলম প্রমুখ বক্তব্য রাখেন। এ সময় অসহায়দের মাঝে ১০ হাজার কম্বল ও শিশু খাদ্য-বস্ত্র বিতরণ করা হয়।

ছাত্রী ধর্ষণে জড়িতদের দ্রুত আইনে আওতায় আনা হবে – স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী

ঢাকা অফিস ॥ ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের ছাত্রী ধর্ষণে জড়িতদের দ্রুত আইনের আওতায় আনা হবে বলে জানিয়েছেন স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী আসাদুজ্জামান খাঁন কামাল। সোমবার বিকালে রাজধানীর রাজারবাগ পুলিশ লাইন্সে পুলিশ সপ্তাহের দ্বিতীয় দিনে আয়োজিত কুচকাওয়াজ পরিদর্শন শেষে এসব কথা বলেন তিনি। স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী বলেন, আইনশৃঙ্খলা বাহিনী আগে অনেক বড় বড় ঘটনা তদন্ত করে বের করেছে। এবারও দ্রুত সয়ের মধ্যে এ ঘটনার দোষীদের আইনের আওতায় আনা হবে। তিনি বলেন, মেয়েটির অভিযোগের ভিত্তিতে আইনশৃঙ্খলা বাহিনীর সবগুলো সংস্থা তদন্ত করছে। কী কারণে, কে বা কারা এ ঘটনা ঘটিয়েছে। তদন্ত প্রতিবেদন পেলে বিস্তারিত জানা যাবে। রোববার সন্ধ্যায় বিশ্ববিদ্যালয়ের বাসে করে বান্ধবীর বাসায় যেতে গিয়ে ধর্ষণের শিকার হন ঐ ছাত্রী। বান্ধবীর বাসা শেওড়া হলেও ভুল করে তিনি কুর্মিটোলা জেনারেল হাসপাতালের সামনে বাস থেকে নেমে যান। আইন শৃঙ্খলা রক্ষাকারী বাহিনী জানায়, বিমানবন্দর সড়কে কুর্মিটোলা জেনারেল হাসপাতালের কাছে গলফ ক্লাব সীমানার শেষ প্রান্তে ঝোপের মধ্যে মেয়েটিকে ধর্ষণ করা হয়।

মেহেরপুরে ভৈরব নদীর পাড় থেকে মূর্তি ও অস্ত্র উদ্ধার

মেহেরপুর প্রতিনিধি ॥ মেহেরপুর ভৈরব নদীর পাড় থেকে ১টি মূর্তি ও ১টি ওয়ান শার্টাগান উদ্ধার করেছে পুলিশ। গত রোববার দিবাগত রাতে মেহেরপুর সদর থানা পুলিশ ভৈরব নদীর পাড়  থেকে মূর্তি ও অস্ত্র উদ্ধার করে। মেহেরপুর সদর থানার এসআই আহসান হাবীব জানান  গোপন সংবাদের ভিত্তিতে মেহেরপুর সদর উপজেলা শহরের পাশ দিয়ে বয়ে চলা ভৈরব নদীর পাড়ে অভিযান চালিয়ে অস্ত্র ও মানব মূর্তি উদ্ধার করা হয়। একটি চক্র এগুলো পাচার করার চেষ্টা করছিল। পুলিশের উপস্থিতি টের পেয়ে পালিয়ে যায়। তবে ওই স্থান থেকে ১টি মানব মূর্তি ও ১টি ওয়ান শার্টারগান উদ্ধার করা হয়।

পুলিশ সপ্তাহ উপলক্ষে ভাষণে প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা

পুলিশ সদস্যদের আরো জনবান্ধব হতে হবে 

ঢাকা অফিস ॥ প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা পুলিশ বাহিনীর সদস্যদের আরো জনবান্ধব হওয়ার নির্দেশ দিয়ে বলেছেন, আসলে পুলিশকে জনতারই হতে হবে, জনগণ যেন আস্থা পায়, বিশ্বাস পায় এবং পুলিশের কাছে দাঁড়াতে পারে। প্রধানমন্ত্রী বলেন, ‘পুলিশের প্রতি আগে মানুষের যে একটা অনীহা ছিল সেটা কিন্তু আর নেই। বরং পুলিশের প্রতি মানুষের আস্থা ও বিশ্বাস বৃদ্ধি পেয়েছে। আসলে এটাই সব থেকে বেশি প্রয়োজন। কাজেই আপনারা সেভাবেই কাজ করবেন।’ তিনি নিজ নিজ কর্মক্ষেত্রে যথাযথভাবে দায়িত্ব পালনের মাধ্যমে দেশের উন্নয়ন এবং অগ্রযাত্রায় অগ্রণী ভূমিকা পালনের জন্যও পুলিশ বাহিনীর সদস্যদের প্রতি আহবান জানান। শেখ হাসিনা বলেন, ‘আপনারা আপনাদের ওপর স্ব-স্ব দায়িত্ব যথাযথভাবে পালন করে বাংলাদেশের উন্নয়ন-অগ্রযাত্রা ত্বরান্বিত করবেন।’ প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা গতকাল সোমবার সকালে তাঁর কার্যালয়ে (পিএমও) ‘পুলিশ সপ্তাহ-২০২০’ উপলক্ষে উর্ধ্বতন পুলিশ কর্মকর্তাদের উদ্দেশ্যে ভাষণে একথা বলেন। দেশের মানুষের নিরপত্তা প্রদানকে অগ্রাধিকার দিয়ে প্রধানমন্ত্রী বলেন, এবার আপনারা মুজিব বর্ষে পুলিশ সপ্তাহের যে প্রতিপাদ্য ‘মুজিব বর্ষের অঙ্গীকার, পুলিশ হবে জনতার’ অত্যন্ত গুরুত্বপূর্ণ। জাতীয় জরুরি সেবা ‘৯৯৯’ চালু হওয়ায় মানুষের মাঝে একটা আত্মবিশ্বাস এসেছে উল্লেখ করে তিনি বলেন,‘কোথাও কেউ কোন অন্যায় দেখলেই সঙ্গে সঙ্গে পুলিশকে ফোন করছে এবং পুলিশ সেখানে পৌঁছে যাচ্ছে, ব্যবস্থা নিচ্ছে।’ শেখ হাসিনা বলেন, ‘আমাদের অর্থনীতি যত শক্তিশালী ও মজবুত হবে তত বেশি আমরা আমাদের সকল প্রতিষ্ঠানকে আরো উন্নত করতে পারবো।’ তিনি বলেন, আজ বাংলাদেশ উন্নয়নের ক্ষেত্রে আন্তর্জাাতিক বিশ্বে উন্নয়নের রোলমডেল এবং উন্নয়নশীল দেশের স্বীকৃতি পেয়েছে। এটা আমাদের ২০২৪ সাল পর্যন্ত ধরে রাখতে হবে যাতে উন্নয়নশীল দেশের স্থায়ী স্বীকৃতি অর্জন করতে পারি। প্রধানমন্ত্রী বলেন, ’৭৫-এর পর অনেকের ধারণা ছিল আওয়ামী লীগ আর জীবনে সরকার গঠন করতে পারবে না। কিন্তু বাংলার জনগণের প্রতি আমার কৃতজ্ঞতা জানাই। আল্লাহ রাব্বুল আলামিন সহায় ছিলেন বলেই এতবড় একটা গুরু দায়িত্ব নিতে পেরেছি এবং দেশটাকে উন্নত করতে পেরেছি। স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী আসাদুজ্জামান খান কামাল, জননিরাপত্তা বিভাগের সিনিয়র সচিব মোস্তফা কামাল উদ্দীন এবং আইজিপি ড. মোহাম্মদ জাভেদ পাটোয়ারী অনুষ্ঠানে বক্তৃতা করেন। এছাড়া, অনুষ্ঠানে ঢাকা মহানগর পুলিশ কমিশনার মো. সফিকুল ইসলাম, চট্টগ্রামের সহকারী পুলিশ কমিশনার আমেনা বেগম, খুলনার পুলিশ কমিশনার খন্দোকার লুৎফুল কবির এবং ময়মনসিংহ রেঞ্জের ডিআইজি ব্যারিস্টার হারুনুর রশিদ পুলিশ সদস্যদের বিভিন্ন দাবি-দাওয়া তুলে ধরেন। প্রধানমন্ত্রী ২০১৭ সালের ১৭ মার্চ থেকে ২০২১ সালের ২৬ মার্চ স্বাধীনতার সুবর্ণ জয়ন্তী উদযাপনকালকে মুজিব বর্ষ হিসেবে তাঁর সরকারের ঘোষণার প্রসঙ্গ টেনে বলেন, ‘বাংলাদেশ বর্তমানে ক্ষুধামুক্ত হয়েছে ঠিকই কিন্তু এখনও বাংলাদেশে যারা দরিদ্র বা গৃহহীন, কর্মক্ষমতাহীন তাদের প্রত্যেকের জীবনমানটা যাতে উন্নত হয়, তারা কেউ যেন ক্ষুধার কষ্টে না ভোগে, রোগে শোকে কষ্ট না পায়।’ ‘সরকারের গৃহীত পদক্ষেপগুলোর মধ্য দিয়েই মানুষকে একটা সুন্দর জীবন উপহার দেয়াই তাঁর সরকারের লক্ষ্য’, বলেন প্রধানমন্ত্রী। তিনি বলেন, ‘স্বাধীনতার মূল্যবোধ যেটা আমরা ’৭৫ এর পর হারিয়ে ফেলেছিলাম তা আজকে আবার ফিরে পেয়েছি। মানুষের মনে আজ স্বাধীনতার মূল্যবোধ জাগ্রত। আবার সেই নতুন চেতনা নিয়েই বাংলাদেশ এগিয়ে যাচ্ছে।’ সকলকে সতর্ক থাকার আহবান জানিয়ে শেখ হাসিনা বলেন,‘আমাদের স্বাধীনতার মূল্যরোধটা আর যেন হারিয়ে না যায়। এই অগ্রযাত্রা ভবিষ্যতে যাতে কেউ আর ব্যাহত করতে না পারে।’ ‘ইনশাল্লাহ বাংলাদেশকে আমরা জাতির পিতার স্বপ্নের সোনার বাংলাদেশ হিসেবেই প্রতিষ্ঠিত করবো, ’যোগ করেন তিনি। পুলিশ সদস্যদের জন্য পৃথক মেডিকেল কোর স্থাপনের প্রয়োজনিয়তা উল্লেখ করেন প্রধানমন্ত্রী। তিনি বলেন, ‘পুলিশে কিন্তু মেধাবীরাই আসে, ব্যারিষ্টার ও আসে ডাক্তারও আসে,আবার ইঞ্জিনিয়ারও আসে। কিন্তু আমি মনেকরি পুলিশের জন্য একটি পৃথক মেডিকেল কোর করা প্রয়োজন।’ পুলিশ হাসপাতালে চিকিৎসক নিয়োগ দেওয়ার ক্ষেত্রে বিড়ম্বনার উল্লেখ করে তিনি বলেন, ‘পুলিশ হাসপাতালে চিকিৎসকরা আসতে চাননা। কাজেই পুলিশের মধ্যে যে ডাক্তার রয়েছে তাঁকে খুজেই সেখানে অনেকসময় দায়িত্ব দিতে হয়। কাজেই আপনারা যদি আলাদা একটা ইউনিট করে ফেলেন ডাক্তারদের জন্য তাহলে আপনাদের চিকিৎসারই একটা সুবিধা হবে।’ শেখ হাসিনা বলেন,পুলিশ সদস্যদের জন্য সরকারী হাসপাতালে ফ্রি চিকিৎসার ব্যবস্থা থাকলেও পুলিশের জনবল বৃদ্ধির প্রেক্ষাপটে পৃথক ইউনিট করে নিতে পারলে ভাল হবে। তিনি বলেন, ‘এই পৃথক ইউনিটের দাবি কিন্তু আপনারা করেননি কিন্তু আমি আপনাদের পক্ষ থেকেই দাবিটা করলাম।’ শিল্পাঞ্চল পুলিশসহ বিভিন্ন বিশেষায়িত পুলিশ ইউনিট বিভিন্ন জায়গায় খোলায় পুলিশ কর্মকর্তাদের পদায়ন এবং পদোন্নতির সুযোগ বৃদ্ধি পেয়েছে উল্লেখ করে শেখ হাসিনা বলেন,‘ আমরা একশ’ শিল্পাঞ্চল গড়ে তুলছি। কাজেই আমাদের শিল্প পুলিশকে আরো শক্তিশালী করতে হবে এবং এখানে নিরাপত্তার ব্যবস্থা নিতে হবে, সেটা আমরা করবো।’ একটি দেশের উন্নয়নে জন নিরাপত্তার বিষয়টি খুবই গুরুত্বপূর্ণ আখ্যায়িত করে তিনি বলেন,‘দেশের আইন শৃঙ্খলা রক্ষাকারি বাহিনীর সদস্যরা যদি ঠিকমত তাঁদের দায়িত্ব পালন করতে পারে তখনই সেটা সম্ভব। আর আপনারা এটা করতে পেরেছেন বলেই আজকে আমরা উন্নতি করতে পেরেছি।’ এজন্য তিনি পুলিশ বাহিনী সদস্যদের ধন্যবাদ জানিয়ে বলেন, ‘পুলিশের জন্য আমরা যেটুকু করেছি তার আমাদের চিন্তা থেকেই করেছি। এজন্য কোন দাবি বা তেমন কিছু করতে হয়নি।’ পুলিশ সদস্যদের বিভিন্ন দাবির প্রেক্ষিতে তিনি জনবল বৃদ্ধির সঙ্গে আনুপাতিকহারে পদ সৃষ্টির প্রয়োজনিয়তাও স্বীকার করেন প্রধানমন্ত্রী। পুলিশ বাহিনীর সদস্য সংখ্যা বর্তমানে বেড়ে দুই লাখ ২২ হাজার ৭২১ জনে উন্নীত হয়েছে উল্লেখ করে তিনি বলেন, ‘পুলিশ সদস্যদের রিক্রুটমেন্টের সময় শুধু নয় পদোন্নতির সময়ও ট্রেনিংয়ের প্রয়োজনিয়তা রয়েছে।’ তিনি বলেন,‘ যুগের পরিবর্তনের সঙ্গে সঙ্গে অপরাধের ধরনও প্রকৃতি পাল্টাছে। কাজেই এর সঙ্গে তাল রেখে আইনশৃঙ্খলা রক্ষাকারী বাহিনীরও ট্রেনিং দরকার। আমরা যে কারণে ট্রেনিংকে গুরুত্ব দিচ্ছি।’ তিনি এ সময় ট্রেনিং সেন্টারগুলোতে পুলিশ কর্মকর্তাদের নিয়োগ দিলে তাদেরকে ‘ডাম্পিং প্লেসে ফেলে দেওয়া হয়েছে’ বলে ভাবনার সমালোচনা করে বলেন, ‘আসলে যারা মেধাবী তাঁদেরকেই সেখানে পদায়ন করা দরকার। কারণ বেসিক নলেজ যদি শক্তিশালী না হয় তাহলে উপযুক্ত লোক আমি কিভাবে গড়ে তুলবো।’ বিআরটিএ,বিআইডব্লিউটিএ এবং মাদক নিয়ন্ত্রণ অধিদপ্তরে পুলিশ সদস্যদের প্রতিনিধি থাকা প্রয়োজন এবং তাঁর সরকার সেই উদোগ নেবে উল্লেখ করে তিনি বলেন, ‘দুর্ণীতি দমন কমিশনে (দুদক) ইতোমধ্যেই পুলিশ সদস্যদের নিয়োগ দেওয়া হয়েছে। তিনি বলেন, ‘দুর্ণীতি দমন কমিশনের কোন গ্রেফতারের এখতিয়ার নেই। গ্রেফতারের জন্য তাদের কিন্তু আইনশৃঙ্খলা রক্ষাকারি বাহিনীর সদস্যদেরই বলতে হবে। তারা নির্দেশ দিতে পারে।’ তিনি আরো বলেন,‘তারা ধরে রেখে ঐখানে হাজতখানা বানাবে,হাজতে রাখবে এটা কিন্তু দুর্ণীতি দমন কমিশনের কাজ না। শেখ হাসিনা বলেন, ‘যার যার কাজ তার তার করতে হবে। একথা মনে রাখতে হবে।’

এএসপি পরিচয়ে বিয়ে করে ধরা ছাত্রলীগ নেতা

ঢাকা অফিস ॥ সহকারী পুলিশ সুপারের মিথ্যা পরিচয় দিয়ে প্রতারণার মাধ্যমে এক নারীকে বিয়ে ও টাকা আত্মসাতের অভিযোগে চট্টগ্রাম দক্ষিণ জেলা ছাত্রলীগের সাংগঠনিক সম্পাদক আকিবুল ইসলামকে গ্রেপ্তার করেছে পুলিশ। গতকাল সোমবার বাকলিয়া থেকে আকিবকে গ্রেপ্তারের পর আদালতের মাধ্যমে কারাগারে পাঠানো হয়েছে। বাকলিয়া থানার ওসি নেজাম উদ্দিন বলেন, “ভুয়া ফেইসবুক আইডি ব্যবহার করে এএসপি পরিচয়ে এক নারীকে বিয়ে ও প্রতারণার মাধ্যমে টাকা হাতিয়ে নেয়ার অভিযোগে আকিবের বিরুদ্ধে মামলা হয়েছে। মামলার প্রেক্ষিতে তাকে গ্রেপ্তার করা হয়েছে।  আকিবের রাজনৈতিক পরিচয়ের বিষয় নিয়ে ওসি নেজাম উদ্দিন কোনো তথ্য দিতে না পারলেও দক্ষিণ জেলা ছাত্রলীগের সভাপতি এসএম বোরহান উদ্দিন জানান, সাংগঠনিক সম্পাদক আকিবকে গ্রেপ্তারের খবর তারা শুনেছেন। বিষয়টি কেন্দ্রীয় কমিটিকে জানানোর পর তাদের নির্দেশনা অনুযায়ী আকিবের বিরুদ্ধে ব্যবস্থা নেয়ার কথা জানান বোরহান। মামলার নথি থেকে জানা যায়, আকিবুল ইসলাম তার ব্যক্তিগত ফেইসবুক আইডি ছাড়াও তাহসান খান প্রিজন নামের আরেকটি ফেইসবুক আইডি চালান। সেই আইডিতে আকিব নিজেকে সহকারী পুলিশ সুপার (এএসপি) পরিচয় দিয়ে দুই সন্তানের জননী ওই নারীর সাথে পরিচিত হন। ওই নারীর সাথে তার স্বামীর দাম্পত্য কলহের বিষয়টি আকিব জানতে পারেন। গত ৩ জুলাই ওই নারীর ডিভোর্সের পর আকিব বিভিন্ন সময়ে তাকে নিয়ে বিভিন্ন স্থানে ঘুরে বেড়ান এবং অন্তরঙ্গ ছবি তোলেন। ৭ অগাস্ট আকিব ওই নারীকে বিয়ে করে বিভিন্ন হোটেলে এবং বাকলিয়া রাহাত্তার পুল এলাকায় বাসা ভাড়া নিয়ে স্বামী-স্ত্রী পরিচয়ে অবস্থান করেন। ওই নারীর অভিযোগ, আকিব চাকরিতে সমস্যার কথা বলে তার কাছ থেকে পাঁচ লাখ টাকা ধার নিয়েও পরিশোধ করেননি। এছাড়াও ওই নারীর কাছ থেকে এক লাখ ২৮ হাজার টাকা নিয়ে মোবাইল ফোন, তিন লাখ টাকায় মোটর সাইকেল কেনা ছাড়াও অন্তত ১০ লাখ টাকা হাতিয়ে নিয়েছেন আকিব। আকিবের সাথে আরও নারীর সাথে সম্পর্ক থাকার বিষয়টি জানতে পেরে ওই নারী তাকে জিজ্ঞাসাবাদ করলে আকিব তার সঙ্গে যোগাযোগ বন্ধ করে দেন। পরে খোঁজ নিয়ে আকিব পুলিশ কর্মকর্তা নন এবং তার সাথে প্রতারণার বিষয়টি জানতে পারেন বলে অভিযোগে উল্লেখ করেন। এদিকে আকিব গত ২৫ ডিসেম্বর ভাড়া বাসায় গিয়ে পিস্তল ঠেকিয়ে হুমকি দেন বলেও অভিযোগ করেছেন ওই নারী।

কুষ্টিয়ায় র‌্যাবের অভিযানে ইয়াবাসহ যুবক গ্রেফতার

নিজ সংবাদ ॥ র‌্যাব-১২, সিপিসি-১, কুষ্টিয়া ক্যাম্পের র‌্যাবের একটি অভিযানিক দল গতকাল সোমবার বিকেল সোয়া ৩টার দিকে মিরপুর উপজেলার  গোবিন্দপুর গ্রামস্থ মালাকার পাড়া লুৎফর রহমান মন্ডলের বাড়ীর সামনে পাঁকা রাস্তার উপরে একটি মাদক অভিযান পরিচালনা করে। উক্ত অভিযানে কুষ্টিয়া সদর উপজেলার বারাদী গ্রামের গঞ্জের মন্ডলের ছেলে চাঁদ মন্ডল (২৫) কে ১৮৫ পিচ ইয়াবা ট্যাবলেট, ১টি মোবাইল ফোন, ২টি সিমকার্ড সহ গ্রেফতার করা হয়। পরর্বতীতে উদ্ধারকৃত আলামতসহ  গ্রেফতারকৃত চাঁদ মন্ডলের বিরুদ্ধে মিরপুর থানায় একটি মাদক মামলা দায়ের করা হয়েছে এবং তাকে মিরপুর থানায় সোপর্দ করা হয়।

আতিককে কারণ দর্শানোর নোটিস ইসির

ঢাকা অফিস ॥ আচরণবিধি লংঘনের অভিযোগে রিটার্নিং কর্মকর্তা কারণ দর্শানোর নোটিস দিয়েছে ঢাকা উত্তর সিটি করপোরেশন নির্বাচনে আওয়ামী লীগ মনোনীত মেয়র প্রার্থী আতিকুল ইসলামকে। এই নির্বাচনী এলাকার রিটার্নিং কর্মকর্তা আবুল কাশেম সোমবার আতিকুলের কাছে যে নোটিস পাঠিয়েছেন তার জবাব তাকে দিতে হবে আগামী দুই দিনের মধ্যে। ঢাকা উত্তর ও দক্ষিণ সিটি করপোরেশন নির্বাচনে ৯ জানুয়ারি পর্যন্ত প্রার্থিতা প্রত্যাহারের সময় রয়েছে। এর পরে প্রতীক পেয়ে প্রচারে নামবেন প্রার্থীরা। এরমধ্যে রোববার সকালে উত্তরায় আওয়ামী লীগের প্রার্থী আতিকুল ইসলামের নির্বাচনী ক্যাম্প উদ্বোধন করা হয়। স্থানীয় সংসদ সদস্য সাহারা খাতুন ওই ক্যাম্প উদ্বোধন করেন। প্রতীক পাওয়ার আগ পর্যন্ত কোনো প্রার্থী নির্বাচনী কার্যক্রম চালাতে পারবেন না। সংসদ সদস্যসহ মন্ত্রীদেরও স্থানীয় এই নির্বাচনে কোনো প্রার্থীর পক্ষে প্রচারে যাওয়ার সুযোগ নেই। আতিকের বিরুদ্ধে শনিবারও প্রচারণামূলক কার্যক্রম চালানোর বিষয়ে লিখিত অভিযোগ পড়েছে রিটার্নিং কর্মকর্তার কাছে। আতিকুলের নির্বাচনী ক্যাম্প উদ্বোধনের অভিযোগ খতিয়ে দেখতে নির্বাচন কমিশনার রফিকুল ইসলামের নির্দেশের একদিন পর কারণ দর্শানোর নোটিস দেওয়া হর। উত্তরায় স্থানীয় সংসদ সদস্যের উপস্থিতিতে নির্বাচনী ক্যাম্প উদ্বোধন করায় কেন আচরণবিধি লংঘিত হবে না তা জানতে জচাওয়া হয়েছে নোটিসে। আতিকুল নির্বাচনী আচরণবিধির ৫ ও ২২ ধারা লংঘন করেছেন বলে এতে উল্লেখ করা হয়েছে। এই নির্বাচনী এলাকায় আতিকুলের সঙ্গে প্রতিদ্বন্দ্বীতা করছেন বিএনপির প্রার্থী তাবিথ আওয়ালসহ ছয়জন।