হালসা মাধ্যমিক বিদ্যালয়ে বই বিতরণ উৎসব

নিজ সংবাদ ॥ সারাদেশের ন্যায় বছরের প্রথম দিনে উৎসবের মধ্যদিয়ে কুষ্টিয়ার মিরপুর উপজেলার ঐতিহ্যবাহী হালসা মাধ্যমিক বিদ্যালয়ের শিক্ষার্থীদের মাঝে বিনামুল্যে বই বিতরণ করা হয়েছে৷বিদ্যালয়ের ম্যানেজিং কমিটির সভাপতি আশরাফুল আলম মিলন  চৌধুরীর সভাপত্বিতে বই উৎসব অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথি হিসেবে বই বিতরন করেন মিরপুর উপজেলা কৃষি অফিসার রোমেশ চন্দ্র  ঘোষ ৷ বিদ্যালয়ের প্রধান শিক্ষক আব্দুস ছালামের পরিচালনায় বই উৎসব অনুষ্ঠানে বিশেষ অতিথি ছিলেন বিদ্যালয় পরিচালনা কমিটির সদস্য রফিকুল ইসলাম বাবু, ছানাউল্লাহ, নিজাম উদ্দিন বিশ্বাস, জোগেস কুমার ঘোষ, মহিলা সদস্য সুকতারা খাতুন, দাতা সদস্য আব্দুল বাতেন বিশ্বাস, বিদ্যুৎসাহী সদস্য তোফাজ্জেল  হোসেন ভুট্টু, বীর মুক্তিযোদ্ধা আক্কাচ আলী, বীর মুক্তীযোদ্ধা আজগার আলী ৷ এ সময় উপস্থিত ছিলেন, বিদ্যালয়ের সহকারী প্রধান শিক্ষক আনোয়ারুল হক, সিনিয়র সহকারী শিক্ষক রেজাউল করীম, আলতাফ হোসেন, সহকারী শিক্ষক মকলেছুর রহমান,  মোস্তাফিজুর রহমান টোকন, বিএসসি গণিত শিক্ষক আলীমুজ্জামান চাঁদ, গাজী আবু বক্কর সিদ্দিক, ধর্মীয় শিক্ষক এনামুল হক, কম্পিউটার শিক্ষক আবু জাফর প্রমূখ ৷

 

দৌলতপুর কলেজের অধ্যক্ষ নতুন বছরে ফুল দিয়ে শিক্ষক-কর্মচারীদের শুভেচ্ছা জানালেন

দৌলতপুর প্রতিনিধি ॥ কুষ্টিয়ার দৌলতপুর মডেল কলেজের অধ্যক্ষ মো. ছাদিকুজ্জামান খান ইংরেজী নববর্ষের প্রথম দিনে গোলাপ ফুল দিয়ে শিক্ষক-কর্মচারীদের শুভেচ্ছা জানিয়েছেন। গতকাল বুধবার (১লা জানুয়ারী) সকালে দৌলতপুর মডেল কলেজের অধ্যক্ষ মো. ছাদিকুজ্জামান খান তাঁর কক্ষে সকল শিক্ষক-কর্মচারীদের ডেকে নিয়ে প্রত্যেকের হাতে গোলাপ ফুল দিয়ে নতুন বছরের শুভেচ্ছা জানান। সেই সাথে সকলকে মিষ্টি মুখ করান।

ভেড়ামারায় স্কুলে স্কুলে বই উৎসব

ভেড়ামারা প্রতিনিধি ॥ নতুন বছরের প্রথম দিনে বুধবার সকালে সারা  দেশের ন্যায় কুষ্টিয়ার ভেড়ামারাতেও প্রাথমিক ও মাধ্যমিক স্তরের শিক্ষার্থীদের বিনা মূল্যে বই বিতরণ উৎসব হয়েছে। সকাল থেকে বিভিন্ন শিক্ষা প্রতিষ্ঠানগুলোতে উৎসবের আমেজে শিক্ষার্থীদের হাতে বিনা মূল্যে বই তুলে দেন ভেড়ামারা উপজেলা নির্বাহী অফিসার সোহেল মারুফ।  ভেড়ামারা সরকারি বালিকা উচ্চ বিদ্যালয়, অক্সফোর্ড ইন্টারন্যাশনাল স্কুল, ভেড়ামারা পাইলট উচ্চ বিদ্যালয়, তাহের মাধ্যমিক বিদ্যালয়, ১২মাইল দাখিল মাদ্রাসা, সবুজকলি প্রাথমিক বিদ্যালয়ের শিক্ষার্থীদের হাতে প্রধান অতিথি হিসেবে উপস্থিত থেকে বই তুলে দেন তিনি। এসময় উপস্থিত ছিলেন, পৌর মেয়র আলহাজ¦ শামিমুল ইসলাম ছানা, ভেড়ামারা উপজেলা মাধ্যমিক শিক্ষা অফিসার মোঃ ফারুক আহম্মেদ, উপজেলা শিক্ষা অফিসার আহসান-আরা, ভেড়ামারা প্রেসক্লাবের যুগ্ন আহবায়ক  এস.এম.আবু ওবাইদা-আল-মাহাদী সহ স্থানীয় গন্যমান্য ব্যক্তিবর্গ। ভেড়ামারা উপজেলা নির্বাহী অফিসার সোহেল মারুফ বলেন, দেশের প্রাথমিক ও মাধ্যমিক স্তরের শিক্ষা প্রতিষ্ঠানে বই উৎসব আজ। নতুন বইয়ের আনন্দে মাতবেন শিশু শিক্ষার্থীরা। উৎসব সফল করতে ভেড়ামারার সব শিক্ষা প্রতিষ্ঠানে পৌঁছেছে বই। ২০১০ সাল থেকে বছরের প্রথম দিন উৎসবের মাধ্যমে শিক্ষার্থীদের মধ্যে বিনামূল্যে বই বিতরণ করে আসছে সরকার।

কালুখালীর শায়েস্তাপুর মডেল একাডেমীতে বই উৎসব

কালুখালী প্রতিনিধি ॥ রাজবাড়ীর কালুখালীতে সারা দেশের ন্যায় উৎসব মুখর পরিবেশে উপজেলার মৃগী ইউপির শায়েস্তাপুর মডেল একাডেমীতে বই উৎসব-২০২০ অনুষ্ঠিত হয়েছে। এ উপলক্ষ্যে গতকাল বুধবার সকাল ১১টায় প্রধান অতিথি হিসেবে বই বিতরণ করেন উপজেলা আওয়ামী যুবলীগের আহবায়ক মনিরুজ্জামান চৌধুরী (মবি)। বিশেষ অতিথি হিসেবে কালুখালী প্রেসক্লাবের সভাপতি মুহাম্মদ ফজলুল হক, একাডেমীর শিক্ষক লতিফা খাতুন, শাহিনুর রহমান, শিউলি খাতুন, রিপা পারভীন, আর্জিনা খাতুন, মিনা খাতুন ও পলাশী মন্ডল ও ছাত্র-ছাত্রী অভিভাবকবৃন্দ উপস্থিত ছিলেন। উল্লেখ্য এ প্রতিষ্ঠানের প্রতিষ্ঠাতা আবুল হাসেম তার অক্লান্ত প্রচেষ্টায় সুনামের সাথে গ্রাম্য এলাকায় আধুনিক শিক্ষা ব্যবস্থা চালু করেছেন।

ভেড়ামারা লেডিস ক্লাব ও অফিসার্স ক্লাবের আয়োজনে পিঠা উৎসব

ভেড়ামারা প্রতিনিধি ॥ কুষ্টিয়ার ভেড়ামারা লেডিস ক্লাব ও অফিসার্স ক্লাবের উদ্যোগে পিঠা উৎসব মঙ্গলবার রাতে উপজেলা নির্বাহী অফিসারের বাসভবনের সামনে অনুষ্ঠিত হয়। উৎসবে বাংলার ঐতিহ্যবাহী  দেশীয় নানা রকম পিঠা যেমন পাটিসাপটা, দুধপুলি, নারকেল পুলি, পায়েস, গোলাপ পিঠা, খেজুরী পিঠা, ছাঁচ পিঠা, গকুল পিঠা, শেড গজ্জা পিঠা, চিতই, ভাপা, নকশি পিঠা, ফুল পিঠা সহ বাহারি সুস্বাদু পিঠা স্থান পায়। ভেড়ামারা উপজেলা নির্বাহী অফিসার ও অফিসার্স ক্লাবের সভাপতি সোহেল মারুফ ও ইউএনও এর সহধর্মীনি ও লেডিস ক্লাবের সভাপতি মোছাঃ ফারহানা ইসলাম তিম্মি’র আমন্ত্রনে উক্ত পিঠা উৎসবে যোগ দেন, ভেড়ামারা উপজেলা পরিষদের চেয়ারম্যান হাজী আক্তারুজ্জামান মিঠু, চেয়ারম্যানের সহধর্মীনি ও উপজেলা জাতীয় মহিলা সংস্থার চেয়ারম্যান বলাকা পারভীন স্বপ্না, ভেড়ামারা পৌর মেয়র আলহাজ¦ শামিমুল ইসলাম ছানা, উপজেলা মাধ্যমিক শিক্ষা অফিসার ফারুক আহম্মেদ, উপজেলা শিক্ষা অফিসার আহসান-আরা, উপজেলা প্রকল্প বাস্তবায়ন কর্মকর্তা মোঃ মিজানুর রহমান, প্রকল্প কর্মকর্তা আবু রায়হান, মনি গ্র“পের চেয়ারম্যান মোঃ মনিরুল ইসলাম মনি, ভেড়ামারা প্রেসক্লাবের যুগ্ন আহবায়ক মোঃ আবু ওবাইদা-আল-মাহাদী, সাংবাদিক জাহিদ হাসান প্রমূখ। ইউএনও এর সহধর্মীনি ও লেডিস ক্লাবের সভাপতি ফারহানা ইসলাম তিম্মি বলেন, আকাশ সংস্কৃতির যুগে বর্তমানে অনেককিছু বদলে গেছে। এখন প্রতিটি  দেশ স্ব-স্ব সংস্কৃতি ইন্টারনেটের মাধ্যমে বিশ্বে তুলে ধরছে। সেই আন্দোলনে বাংলাদেশ তথা আজকের প্রজন্মও সংশ্লিষ্ট। তাদের সামনে  যেমন বিজাতীয় সংস্কৃতি উপস্থিত হচ্ছে তেমনি দেশীয় সংস্কৃতিও। তাদের খাবারের মেনুতে ঠাঁই পাচ্ছে দেশ-বিদেশের মুখরোচক খাবার। অথচ অনেকেই জানেন না, আমাদের রয়েছে গৌরব করার মতো খাবার সংস্কৃতি। একসময় বাংলাদেশকে বলা হত পিঠা-পুলি দেশ। কালের পরিক্রমায় সে-ঐতিহ্য হারাতে বসেছে। তা যেন হারিয়ে না যায়, তাকে ধরে রাখার প্রয়াসে লেডিস ক্লাব ও অফিসার্স ক্লাব যৌথ ভাবে আয়োজন করেছে এ পিঠা উৎসবের।

আলমডাঙ্গায় পাঠ্যপুস্তক উৎসব অনুষ্ঠিত

আলমডাঙ্গা অফিস ॥ আলমডাঙ্গা উপজেলার প্রাথমিক, মাধ্যমিক, মাদ্রাসা, এবতেদায়ী ও ভোকেশনাল শিক্ষা প্রতিষ্ঠানের ৯২ হাজার ১২১ জন শিক্ষার্থীর মাঝে ৯ লাখ ১০ হাজার ৮৬৮টি বই দেওয়া হয়েছে। উপজেলা মাধ্যমিক শিক্ষা কর্মকর্তা আব্দুল বারী বলেন- উপজেলার মাধ্যমিক পর্যায়ে ২৭ হাজার ৫০০জন শিক্ষার্থীকে ৪ লাখ ৪৮ হাজারটি বই। মাদ্রাসার ৯ হাজার ৮০০ জন শিক্ষার্থীকে ১লাখ ৫০ হাজারটি বই। মাদ্রাসার এবতেদায়ী শাখার ৯ হাজার ৫০০ জন শিক্ষার্থীকে ৬৭ হাজার ৬০০টি বই ও ভোকেশনালে অধ্যায়নরত ৬৫৭ জন শিক্ষার্থীকে ৫ হাজার ৮১৫টি বই সংশ্লিষ্ট প্রতিষ্ঠান প্রধানদের কাছে দেওয়া হয়েছে। উপজেলা প্রাথমিক শিক্ষা কর্মকর্তা শামসুজ্জোহা বলেন- উপজেলার ১৪৫টি প্রাথমিক শিক্ষা প্রতিষ্ঠানে অধ্যায়নরত ৩৭ হাজার ৯৮৯ জন শিক্ষার্থীকে ১লাখ ৯০ হাজার ৪৫৩টি বই সংশ্লিষ্ট প্রতিষ্ঠান প্রধানদের কাছে দেওয়া হয়েছে। মাদরাসা, প্রাথমিক ও মাধ্যমিক বিদ্যালয়ের মাঠে মাঠে জমে ওঠে বই উৎসবে। গতকাল আলমডাঙ্গা মাধ্যমিক বালিকা বিদ্যালয়ের হলরুমে বই বিতরণ অনুষ্ঠানে সভাপতিত্ব করেন উপজেলা নির্বাহী অফিসার মোঃ লিটন আলী। প্রধান অতিথি ছিলেন উপজেলা চেয়ারম্যান আইয়ুব হোসেন। বিশেষ অতিথি ছিলেন উপজেলা ভাইস চেয়ারম্যান এ্যাডঃ সালমুন আহম্মেদ ডন, উপজেলা মাধ্যমিক শিক্ষা অফিসার আব্দুল বারী, প্রধান শিক্ষক মনিরুজ্জামান, সহকারি প্রধান শিক্ষক আনিসুজ্জামান। উপজেলা একাডেমিক সুপার ভাইজার ইমরুল হকের উপস্থাপনায় অন্যদের মধ্যে উপস্থিত ছিলেন শিক্ষক হাসিনুর রহমান, রওশনারা খাতুন, মজনুর রহমান প্রমুখ। অন্যদিক কুমারি ইসলামপুর সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়ে বই বিতরন অনুষ্ঠানে সভাপতিত্ব করেন উপজেলা নির্বাহী অফিসার মোঃ লিটন আলী। প্রধান অতিথি হিসেবে উপস্থিত ছিলেন উপজেলা চেয়ারম্যান আইয়ুব হোসেন। বিশেষ অতিথি ভাইস চেয়ারম্যান সালমুন আহম্মেদ ডন, উপজেলা শিক্ষা অফিসার আব্দুল বারী, একাডেমিক সুপার ভাইজার ইমরুল হক, প্রধান শিক্ষক আলহাজ্ব রাবিবুস সালেহীন। এ সময় প্রধান অতিথি বলেন- আজ বই বিতরন অন্য রকম এক উত্তেজনা। শিক্ষার্থীরা বসে আছে নিজ নিজ আসনে। উপজেলা চেয়ারম্যান আইয়ুব হোসেন বই তুলে দেন শিক্ষার্থীদের হাতে। অনুষ্ঠানে তিনি তার ছেলেবেলার শিক্ষাজীবনের কথা তুলে ধরে শিক্ষার্থীদের উদ্দেশে বলেন- আগে বড় ভাইয়ের পুরোনো বই পড়ত ছোট ভাইয়েরা। সময়ের সঙ্গে এখন এই ধারার পরিবর্তন হয়েছে। প্রতি বছর শিক্ষার্থীদের হাতে আসছে নতুন বই। এই বই পড়ে তারা দেশ ও জাতির ঐতিহ্য-ইতিহাস জানবে। নতুন বইয়ের গন্ধে ফুলের মতো ফুটে উঠে কোমলমতি শিক্ষার্থীরা। এ এক অভিনব এবং বিস্ময়কর ব্যাপার বলে মনে করেন উপজেলা চেয়ারম্যান আইয়ুব হোসেন। সরকারের অনেক ভালো কাজের মধ্যে বই বিতরণ কর্মসূচি একটি প্রশংসনীয় উদ্যোগ। তার আশা অভিভাবক ও শিক্ষকদের সহযোগিতায় এই কর্মসূচি এগিয়ে যাবে। কিছুক্ষণের মধ্যেই তারা হাতে নতুন বই পাবে। ঘড়ির কাটার সাথে তাল মিলিয়ে নির্দিষ্ট সময়ে তারা পেয়েও গেল। বই বিতরণ শুরু হলে উৎসবে মেতে ওঠে তারা। সেই উৎসবের আমেজ ছড়িয়ে পড়ে শিক্ষা প্রতিষ্ঠানের অলিতে গলিতে। অভিভাবক ও তাদের সন্তানদের আনন্দেই আনন্দ। সময়ের ফ্রেমে বেঁধে রাখার মতো একটি দিন ছিলো ১ জানুয়ারির বই উৎসব।

গাংনীতে পাঠ্যপুস্তক বিতরণ উৎসব অনুষ্ঠিত

গাংনী প্রতিনিধি ॥ সারাদেশের ন্যায় মেহেরপুরের গাংনীতে পাঠ্যপুস্তক (বই) বিতরণ উৎসব অনুষ্ঠিত হয়েছে। গতকাল বুধবার গাংনী সরকারী উচ্চ মাধ্যমিক বালিকা বিদ্যালয়ে এ উৎসবের আয়োজন করা হয়। অনুষ্ঠানে সভাপতিত্ব করেন বিদ্যালয়ের প্রধান শিক্ষক আশরাফুজ্জামান লালু। প্রধান অতিথি হিসাবে উপস্থিত থেকে শিক্ষার্থীদের হাতে পাঠ্যপুস্তক তুলে দেন গাংনী উপজেলা পরিষদের চেয়ারম্যান ও মেহেরপুর জেলা আ.লীগের সাধারণ সম্পাদক এমএ খালেক। বিশেষ অতিথি হিসাবে বক্তব্য রাখেন গাংনী উপজেলা শিক্ষা অফিসার এহসান হাবিব, চৌগাছা সরকারী প্রাথমিক বিদ্যালয়ের সহকারী শিক্ষক রকিবুল ইসলাম ইসলাম প্রমুখ। এ সময় উপস্থিত ছিলেন গাংনী সরকারী উচ্চ মাধ্যমিক বালিকা বিদ্যালয়ে অন্যান্য শিক্ষক-শিক্ষিকা ও শিক্ষার্থীরা। একই দিনে পাঠ্যপুস্তক বিতরণ করা হয়েছে গাংনী সিদ্দিকীয়া সিনিয়র মাদ্রাসায়, গাংনী মডেল সরকারী প্রাথমিক বিদ্যালয়। এসব মাদ্রাসা ও বিদ্যালয়গুলোতে প্রধান অতিথি হিসাবে উপস্থিত থেকে শিক্ষার্থীদের হাতে বিনামূল্যে পাঠ্যপুস্তক বিতরণ করেন উপজেলা পরিষদের চেয়ারম্যান এমএ খালেক। এছাড়াও উপজেলা সকল বিদ্যালয়ে একযোগে বিনামূল্যে নতুন পাঠ্যপুস্তক বিতরণ করা হয়। বিদ্যালয়ের শিক্ষক-শিক্ষিকা, বিদ্যালয় পরিচালনা পর্ষদের সদস্য ও অতিথিবৃন্দ পাঠ্যপুস্তক বিতরণ করেন।

মাজিহাট মাধ্যমিক বিদ্যালয়ে বই বিতরন উৎসব

নিজ সংবাদ ॥ সারাদেশের ন্যায় বছরের প্রথম দিনে উৎসবের মধ্যদিয়ে কুষ্টিয়ার মিরপুর উপজেলার কুর্শা ইউনিয়নের মাজিহাট মাধ্যমিক বিদ্যালয়ের শিক্ষার্থীদের মাঝে বিনামুল্যে বই বিতরণ করা হয়েছে ৷ বিদ্যালয়ের ম্যানেজিং কমিটির সভাপতি ও কুর্শা ইউনিয়ন আওয়ামী লীগের সভাপতি আব্দুল হান্নানের সভাপত্বিতে বই উৎসব অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথি হিসেবে বই বিতরন করেন মিরপুর উপজেলা পরিষদের মহিলা ভাইস-চেয়ারম্যান মোছাঃ মর্জিনা খাতুন ৷ বই বিতরণ উৎসব অনুষ্ঠানটি পরিচালনা করেন অত্র বিদ্যালয়ের প্রধান শিক্ষক একরামুল হক ৷

বঙ্গবন্ধুর সোনার বাংলা গড়ার অন্যতম অনুষঙ্গ আইনের শাসন – আইনমন্ত্রী

ঢাকা অফিস ॥ চলতি বছর পাঁচ থেকে ছয় লাখ মামলা নিষ্পত্তির পরিকল্পনা নেয়া হয়েছে বলে জানিয়েছেন আইনমন্ত্রী আনিসুল হক। তিনি বলেন, আমাদের লক্ষ্য এ বছর পাঁচ থেকে ছয় লাখ মামলার নিষ্পত্তি করা। মামলা কমানোর যে পরিকল্পনা গ্রহণ করেছি এটা অবাস্তব নয়।গতকাল বুধবার দুপুরে রাজধানীর জুডিশিয়াল ট্রেনিং ইন্সটিটিউটে সহকারী বিচারক এবং সমতুল্য বিচার বিভাগীয় জুডিশিয়াল কর্মকর্তাদের ৪০তম বুনিয়াদি প্রশিক্ষণ কোর্সের উদ্বোধন শেষে সাংবাদিকদের প্রশ্নের জবাবে তিনি এসব কথা বলেন।চার মাস মেয়াদী ৪০তম বুনিয়াদি প্রশিক্ষণ কোর্সে মোট ৪৫ জন সহকারী বিচারক এবং সমতুল্য বিচার বিভাগীয় জুডিশিয়াল কর্মকর্তারা অংশগ্রহণ করবেন।আইনমন্ত্রী বলেন, আমি যদি বলি এ বছরেই ৩০ লাখ মামলা নিষ্পত্তি করে ফেলব- এটা সম্ভব না। এবছর আমরা কমপক্ষে পাঁচ থেকে ছয় লাখ মামলা কমানোর পরিকল্পনা গ্রহণ করেছি। সেই পরিকল্পনা অনুযায়ী বিচারিক আদালতের লোকবল নিয়োগের পরিকল্পনা করছি।তিনি বলেন, বিকল্পবিরোধ নিষ্পত্তি অবশ্যই আরও জোরদার করা হবে। বিকল্পবিরোধ নিষ্পত্তির ক্ষেত্রে প্রতিবন্ধকতা হচ্ছে, জনগণের কাছে এটার পরিচিতি সেভাবে গড়ে উঠেনি। যে সব মামলা আপসযোগ্য সেই সব মামলায় যেন আদালত বলেন, এ মামলা বাইরে নিষ্পত্তি করে ফেলেন। সেই উদ্যোগ যেন আদালত থেকে নেয়া হয়। সেই বিষয়ে আমরা সচেষ্ট রয়েছি। বিচারকদেরও আমরা এমন উদ্যোগ নেয়ার জন্য বারবার আহ্বান জানাচ্ছি।বিকল্পবিরোধ নিষ্পত্তি বিষয়ে আইনজীবীদের মতবিরোধ রয়েছে- এমন প্রশ্নের উত্তরে আইনমন্ত্রী বলেন, আমার মনে হয় না আইনজীবীদের মধ্যে খুব একটা অনীহা রয়েছে। বিকল্পবিরোধ নিষ্পত্তি যদি কার্যকর হতে থাকে এবং জনগণের মধ্যে গ্রহণযোগ্যতা বাড়তে থাকে, তাহলে আইনজীবীরা এটার প্রতিবন্ধকতা হিসেবে থাকবেন বলে আমার মনে হয় না। গত ১০ বছরে জনগণের বিচার বিভাগের ওপর আস্থা বেড়েছে বলেও তিনি উল্লেখ করেন।এর আগে প্রশিক্ষণার্থীদের উদ্দেশ্যে আইনমন্ত্রী বলেন, রাষ্ট্রের তিনটি অঙ্গ, নির্বাহী বিভাগ, বিচার বিভাগ এবং আইনসভা। সবার কাজের ধরন ভিন্ন হলেও লক্ষ্য ও উদ্দেশ্য এক। সেই লক্ষ্য হচ্ছে জাতির পিতা বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের স্বপ্নের সোনার বাংলাদেশ গড়া। বঙ্গবন্ধুর স্বপ্ন পূরণ করতে হলে আমাদের সবাইকে এক লক্ষ্য এক প্রেরণায় কাজ করতে হবে। বঙ্গবন্ধুর সোনার বাংলাদেশ গড়ার অন্যতম অনুষঙ্গ হল আইনের শাসন এবং ন্যায়বিচার।তিনি বলেন, বর্তমান সরকারের আমলে বিচারকদের জন্য বিভিন্ন ধরনের সুযোগ-সুবিধা বাড়ানো হয়েছে। আপনারা অন্যের অনুকরণীয় হবেন এমন দৃষ্টিভঙ্গি নিয়ে আপনাদের কাজ করতে হবে। সততার ভিত্তিতে চারিত্র্যিক দৃঢ়তার সঙ্গে আপনাদের কার্যক্রম পরিচালনা করতে হবে। আপনাদের লোভ-লালসার কারণে সাধারণ মানুষের মনে যেন বিচার বিভাগ সম্বন্ধে বিন্দুমাত্র ক্ষোভ এবং হতাশা বা বিরূপ প্রতিক্রিয়া না হয়। মনে রাখতে হবে আপনাদের বিচারক হয়ে ওঠার পেছনে দেশের গরিব-মেহনতী মানুষের প্রত্যক্ষ এবং পরোক্ষ অবদান রয়েছে। আপনাদের কর্মক্ষেত্র হচ্ছে এ সব মানুষের শেষ ভরসাস্থল।

ঝিনাইদহে ছাত্রদলের প্রতিষ্ঠাবার্ষিকী কর্মসূচী পালন

ঝিনাইদহ প্রতিনিধি ॥ ঝিনাইদহে ছাত্রদলের প্রতিষ্ঠাবার্ষিকী কর্মসূচী পালন করা হয়েছে। ঝিনাইদহ জেলা ছাত্রদলের আয়োজনে বুধবার সকালে জেলা শহরের স্থানীয় ঢাকা কমিউনিটি সেন্টারে ছাত্রদলের ৪১ তম প্রতিষ্ঠাবার্ষিকী উপলক্ষে আলোচনা সভা অনুষ্ঠিত হয়। ঝিনাইদহ  জেলা ছাত্রদলের সভাপতি সমিনুজ্জামান সমিনের সভাপতিত্বে প্রধান অতিথি হিসেবে বক্তব্য রাখেন মুক্তিযোদ্ধা কমান্ডার সাবেক এমপি মসিউর রহমান। বিশেষ অতিথি ছিলেন সদর থানা বিএনপির সাধারন সম্পাদক এ্যাডঃ আব্দুল আলিম,এনামূল কবির মুকুল, শাহজাহান আলি, জেলা কৃষকদলের সভাপতি আনোয়ারুল ইসলাম বাদশা, কালিচরনপুর ইউনিয়ন বিএনপির সভাপতি মোঃ দেলোয়ার হোসেন, জেলা যুবদলের সভাপতি আহসান হাবিব রোনক, আজিজুল ইসলাম লিটন, জেলা ছাত্রদলের সিনিয়র সহ-সভাপতি মিরাজুল ইসলাম, সহ-সভাপতি শাহিনুর রহমান মূন্সি, মেহেদী হাসান প্রমূখ। আলোচনা সভার আগে ঢাকা কমিউনিটি সেন্টারের নিচ থেকে একটি র‌্যালী হয়ে আলোচনা সভায় অংশ নেয় দলটির নেতাকর্মীরা। এসময় ঢাকা কমিউনিটি সেন্টারের প্রতিষ্ঠা বার্ষিকী দিচ্ছে ডাক-গণতন্ত্র মুক্তি পাক এই শ্লোগানে মুখরিত ছিল ছাত্র দলের নেতা কর্মিদের মধ্যে। আলোচনা সভায় দেশ মাতা উল্লে¬খ করে বক্তাগন খালেদা জিয়ার নিঃশর্ত মুক্তি ও দেশ নায়ক তারেক রহমানের স্ব-সম্মানে দেশে প্রত্যাবর্তনের দাবি জানান। পরে দোয়া মাহফিল অনুষ্ঠিত হয়।

দৌলতপুরে স্কুলে স্কুলে বই উৎসব পালিত

দৌলতপুর প্রতিনিধি ॥ শিক্ষা নিয়ে গড়ব দেশ, শেখ হাসিনার বাংলাদেশ’ এই শ্লোগানে কুষ্টিয়ার দৌলতপুরেও স্কুলে স্কুলে পাঠ্যপুস্তক/বই উৎসব পালিত হয়েছে। প্রতিবারের মত এবারও ইংরেজি বছরের প্রথম দিনেই নতুন বই পেয়ে শিক্ষার্থীরা আনন্দ প্রকাশ করেছে। এ উপলক্ষে গতকাল বুধবার বেলা সাড়ে ১১টায় দৌলতপুর সরকারী পাইলট হাইস্কুল মাঠে শিক্ষার্থীদের হাতে নতুন বই তুলে দিয়ে পাঠ্যপুস্তক উৎসবের আনুষ্ঠানিক উদ্বোধন করেন কুষ্টিয়া-১ দৌলতপুর আসনের সংসদ সদস্য এ্যাড. আ, কা, ম সরওয়ার জাহান বাদশা। এসময় উপস্থিত ছিলেন দৌলতপুর উপজেলা চেয়ারম্যান এ্যাড. এজাজ আহমেদ মামুন, দৌলতপুর উপজেলা নির্বাহী অফিসার শারমিন আক্তার, দৌলতপুর থানার ওসি এস এম আরিফুর রহমান, ভাইস চেয়ারম্যান সাক্কির আহমেদ, সোনালী খাতুন আলেয়া, দৌলতপুর মাধ্যমিক শিক্ষা অফিসার সরদার মো. আব্দুস সালেক ও দৌলতপুর সরকারী পাইলট হাইস্কুলের প্রধান শিক্ষক মো. ফরাত আলী। বক্তব্য শেষে সংসদ সদস্য এ্যাড. আ, কা, ম সরওয়ার জাহান বাদশা প্রাথমিক ও মাধ্যমিক স্তরের শিক্ষার্থীদের হাতে বছরের প্রথম দিন নতুন বই তুলে দেন। এছাড়াও উপজেলার সকল প্রাথমিক ও মাধ্যমিক বিদ্যালয়ে শিক্ষার্থীদের মধ্যে দিনব্যাপী নতুন বই বিতরণ করা হয়।

দৌলতপুরে শীতকালীন ক্রীড়া প্রতিযোগিতার পুরস্কার বিতরণ

দৌলতপুর প্রতিনিধি ॥ কুষ্টিয়ার দৌলতপুরে ৪৯তম জাতীয় স্কুল, মাদ্রাসা ও কারিগরি শিক্ষার শীতকালীন ক্রীড়া প্রতিযোগিতার পুরস্কার বিতরণ অনুষ্ঠিত হয়েছে। গতকাল বুধবার বিকেল ৪টায় দৌলতপুর উপজেলা পরিষদ মিলনায়তনে এ পুরস্কার বিতরণ অনুষ্ঠিত হয়। দৌলতপুর উপজেলা চেয়ারম্যান এ্যাড. এজাজ আহমেদ মামুনের সভাপতিত্বে পুরস্কার বিতরণ অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথি ছিলেন কুষ্টিয়া-১ দৌলতপুর আসনের সংসদ সদস্য এ্যাড. আ, কা, ম সরওয়ার জাহান বাদশা। বিশেষ অতিথি ছিলেন দৌলতপুর উপজেলা নির্বাহী অফিসার শারমিন আক্তার, দৌলতপুর থানার ওসি এস এম আরিফুর রহমান, মুক্তিযোদ্ধা হায়দার আলী, উপজেলা ভাইস চেয়ারম্যান সাক্কির আহমেদ, সোনালী খাতুন আলেয়া ও জেলা পরিষদের সদস্য মায়াবি রোমান্স মল্লিক। অনুষ্ঠানে স্বাগত বক্তব্য রাখেন দৌলতপুর মাধ্যমিক শিক্ষা অফিসার সরদার মো. আব্দুস সালেক। দৌলতপুর ক্রীড়া সমিতির আয়োজনে বিভিন্ন ক্রীড়া প্রতিযোগিতার বিজয়ী ও রানার আপ খেলোয়াড়ের হাতে পুরস্কার তুলে অনুষ্ঠানের প্রধান অতিথিসহ অন্যান্য অতিথিবৃন্দ।

কুষ্টিয়া জেলার মধ্যে সর্বোচ্চ নম্বর পেয়ে উত্তীর্ণ হয়েছে জিলা স্কুলের শিক্ষার্থী নাফসান বিন রজব

নিজ সংবাদ ॥ কুষ্টিয়া জিলা স্কুলের মেধাবী শিক্ষার্থী নাফসান বিন রজব এবার প্রাথমিক শিক্ষা সমাপণী পরীক্ষায় অংশগ্রহন করে সর্বোচ্চ ৫৯৭নম্বর পেয়ে গোল্ডেন জিপি৫ উত্তীর্ণ হয়েছে। জিলা স্কুল সূত্রে জানা যায়-জিলা স্কুলের ৫ম শ্রেনীর প্রভাতি ‘খ’ শাখার শিক্ষার্থী নাফসান বিন রজব শিক্ষা সমাপনী পরীক্ষায় অংশ নিয়ে ৬টি বিষয়ের মধ্য ৫টি বিষয়ে ১০০ নম্বর এবং বাংলায় ৯৭ নম্বর  পেয়ে সর্বমোট ৬০০নম্বরের মধ্যে ৫৯৭ নম্বর পায়। কুষ্টিয়া সরকারী বালিকা বিদ্যালয়ের একজন শিক্ষার্থী সর্বোচ্চ ৫৯৪নম্বর প্রাপ্ত হওয়ায় নাফসানের পরীক্ষায় আশা করছে নাফসান খুলনা বিভাগের সর্বোচ্চ নম্বর অর্জনকারী হবেন। নাফসানের পিতা কুষ্টিয়া শহরের মজমপুরগেটে অবস্থিত সিঙ্গারের ম্যানেজার  রজব মিঞা ও মা নূরুন নাহার গৃহিনী। নাফসানের অভূত সাফল্যে পুরো পরিবারসহ স্কুলের শিক্ষক এবং সহপাঠিরা সকলেই দারুন খুশি। নাফসান ভবিষ্যতে সফটওয়ার ইঞ্জিনিয়ার হওয়ার আশা করে। সে সকলে দোয়া প্রার্থী।

বাংলাদেশ মাদক প্রতিরোধ কমিটি (বিএমপিসি)’র ৬ষ্ঠ প্রতিষ্ঠা বার্ষিকী পালন

নিজ সংবাদ ॥ ‘মাদকের বিরুদ্ধে রুখলে দেশ, পথ হারাবে না বাংলাদেশ’ এই শ্লোগানকে সামনে রেখে গতকাল সকাল থেকে বাংলাদেশ মাদক প্রতিরোধ কমিটি (বিএমপিসি)’র ষষ্ঠ প্রতিষ্ঠা বার্ষিকী উপলক্ষে কেক কেটে দিনটি উদযাপন করেন বিএমপিসি’র কুষ্টিয়া জেলার বিভিন্ন ইউনিট। গতকাল সন্ধ্যায় শহরের বঙ্গবন্ধু সুপার মার্কেটের বাংলাদেশ মাদক প্রতিরোধ কমিটি (বিএমপিসি)’র অস্থায়ী কার্যালয়ে কেক কাটা হয়। এসময় উপস্থিত ছিলেন বাংলাদেশ মাদক প্রতিরোধ কমিটি (বিএমপিসি)’র প্রতিষ্ঠাতা সভাপতি হাসিবুর রহমান রিজু, মাদকদ্রব্য নিয়ন্ত্রণ অধিদপ্তর কুষ্টিয়া সহকারী পরিচালক শিরীন আক্তার, কুষ্টিয়া জেলা আওয়ামীলীগের সাবেক দপ্তর সম্পাদক হাজী তরিকুল ইসলাম মানিক, কুষ্টিয়া  জেলা যুব মহিলা লীগের আহবায়ক ও হরিপুর ইউপি চেয়ারম্যান এম সম্পা মাহামুদ, কুষ্টিয়া জজ কোর্টের এপিপি সাজ্জাদ হোসেন সেনা, বাংলাদেশ মাদক প্রতিরোধ কমিটি (বিএমপিসি) অর্থ সম্পাদক ও কুষ্টিয়া জেলা শাখার সাধারণ সম্পাদক এম সোহাগ হাসান, প্রচার সম্পাদক ও জেলা শাখার সাংগঠনিক সম্পাদক শাহারিয়া ইমন রুবেল, জেলা শাখার মহিলা বিষয়ক সম্পাদক টপি বিশ্বাস, দপ্তর সম্পাদক ইমদাদুল হক মিলন, প্রচার সম্পাদক আলামিন খান রাব্বী, তথ্য ও গবেষনা বিষয়ক সম্পাদক শাহরিয়ার ইমরান সহ নেতৃবৃন্দ। এছাড়াও বিকেলে বটতৈল কুষ্টিয়া সদর উপজেলা শাখার অস্থায়ী কার্যালয়ে কেক কেটে প্রতিষ্ঠা বার্ষিকী পালন করেন উপজেলা শাখার নেতৃবৃন্দ। এসময় উপস্থিত ছিলেন বাংলাদেশ মাদক প্রতিরোধ কমিটি (বিএমপিসি) প্রতিষ্ঠাতা সভাপতি হাসিবুর রহমান রিজু, কুষ্টিয়া জেলা শাখার সাধারণ সম্পাদক এম সোহাগ হাসান, সাংগঠনিক সম্পাদক শাহারিয়া ইমন রুবেল, সদর উপজেলা শাখার সভাপতি নজরুল ইসলাম প্রধান, সাধারণ সম্পাদক জিল্লুর রহমানসহ নেতৃবৃন্দ। কেক কাটার পূর্বে আলোচনা সভা অনুষ্ঠিত হয়। অতিথিরা বলেন- মাদকমুক্ত বাংলাদেশ গড়তে আমরা বদ্ধপরিকর। কুষ্টিয়া মিরপুরে মাদক প্রতিরোধ কমিটির ৬ষ্ঠ প্রতিষ্ঠা বার্ষিকী পালিত হয়েছে। এ উপলক্ষে গতকাল বিকেলে মিরপুর মুক্তিযোদ্ধা চত্বরে  আলোচনা সভা ও কেক কাটা হয়। মিরপুর উপজেলা মাদক প্রতিরোধ কমিটির সভাপতি বীর মুক্তিযোদ্ধা নজরুল করিমের সভাপতিত্বে অনুষ্ঠানে উপস্থিত ছিলেন মিরপুর উপজেলা মাদক প্রতিরোধ কমিটির যুগ্ম সাধারণ সম্পাদক আলম মন্ডল, মিরপুর পৌর মাদক প্রতিরোধ কমিটির সদস্য এস কে চঞ্চল, আলী মামুন, ড্যানি ও অনান্য সদস্যবৃন্দ। রাত সাড়ে ৮টায় দৌলতপুর উপজেলা মাদক প্রতিরোধ কমিটির আয়োজনে বাংলাদেশ মাদক প্রতিরোধ কমিটির ৬ষ্ঠ প্রতিষ্ঠাবার্ষিকী পালন করেন। এসময় উপস্থিত ছিলেন দৌলতপুর উপজেলা মাদক প্রতিরোধ কমিটির আহ্বায়ক আসাদুজ্জামান লোটন চৌধুরী, যুগ্ম আহ্বায়ক আনিসুর রহমান সাগরসহ নেতৃবৃন্দরা। সকাল ১১টায় কুষ্টিয়া পলিটেকনিক ইনস্টিটিউটে পলিটেকনিক শাখার নেতৃবৃন্দ কেক কেটে প্রতিষ্ঠা বার্ষিকী পালন করেন। এসময় উপস্থিত ছিলেন, বাংলাদেশ মাদক প্রতিরোধ কমিটির প্রতিষ্ঠাতা সভাপতি হাসিবুর রহমান রিজু, কুষ্টিয়া পলিটেকনিক এর ভারপ্রাপ্ত প্রিন্সিপাল মোশারফ হোসেন। বাংলাদেশ মাদক প্রতিরোধ কমিটি (বিএমপিসি) প্রচার সম্পাদক ও কুষ্টিয়া জেলা শাখার সাংগঠনিক সম্পাদক শাহরিয়ার ইমন রুবেল, সদর উপজেলার সাধারন সম্পাদক জিল্লুর রহমান, পলিটেকনিক শাখার সভাপতি নাজমুস সাকিব সোহাগ, সাধারণ সম্পাদক সালমান হাফিজ তপুসহ আরো অনেকে। বেলা ১২টায় আলামপুর ইউনিয়ন মাদক প্রতিরোধ কমিটি স্বস্তিপুর মাধ্যমিক বিদ্যালয়ে  কেক কেটে প্রতিষ্ঠা বার্ষিকী পালন করেন। এসময় উপস্থিত ছিলেন এসময় উপস্থিত ছিলেন বাংলাদেশ মাদক প্রতিরোধ কমিটি (বিএনপিসি)র প্রতিষ্ঠাতা সভাপতি হাসিবুর রহমান রিজু, জেলা পরিষদের সদস্য মামুন আর রশিদ, কুষ্টিয়া জেলা মাদক প্রতিরোধ কমিটির সাধারণ সম্পাদক এম সোহাগ হাসান, সাংগঠনিক সম্পাদক শাহারিয়া ইমন রুবেল, সদর উপজেলার শাখার সভাপতি নজরুল ইসলাম প্রধান, সাধারণ সম্পাদক জিল্লুর রহমান, ইউনিয়ন আওয়ামীলীগের সভাপতি হান্নান বিশ্বাস, সাধারণ সম্পাদক সেলিম বিশ্বাস, আলামপুর ইউনিয়ন মাদক প্রতিরোধ কমিটির সভাপতি নাজিম উদ্দিন, সাধারণ সম্পাদক আব্দুর রহমানসহ নেতৃবৃন্দ। দুপুরে জিয়ারখী ইউনিয়ন মাদক প্রতিরোধ কমিটি তাদের নিজ কার্যালয়ে কেক কেটে প্রতিষ্ঠা বার্ষিকী পালন করেন। এসময় উপস্থিত ছিলেন বাংলাদেশ মাদক প্রতিরোধ কমিটি (বিএমপিসি) প্রতিষ্ঠাতা সভাপতি হাসিবুর রহমান রিজু, কুষ্টিয়া জেলা শাখার সাধারণ সম্পাদক এম সোহাগ হাসান, সাংগঠনিক সম্পাদক শাহারিয়া ইমন রুবেল, সদর উপজেলা শাখার সভাপতি নজরুল ইসলাম প্রধান, সাধারণ সম্পাদক জিল্লুর রহমান, জিয়ারখী ইউনিয়ন শাখার শরিফুল ইসলাম, সাধারণ সম্পাদক টুটুল আহাম্মেদসহ নেতৃবৃন্দ। সন্ধ্যা সাড়ে ৫ টায় কাঞ্চনপুর ইউনিয়ন মাদক প্রতিরোধ কমিটি কেক কেটে প্রতিষ্ঠা বার্ষিকী পালন করেন।  সেখানে উপস্থিত ছিলেন বাংলাদেশ মাদক প্রতিরোধ কমিটি (বিএমপিসি) প্রতিষ্ঠাতা সভাপতি হাসিবুর রহমান রিজু, কুষ্টিয়া  জেলা শাখার সাধারণ সম্পাদক এম সোহাগ হাসান, সাংগঠনিক সম্পাদক শাহারিয়া ইমন রুবেল, সদর উপজেলা শাখার সভাপতি নজরুল ইসলাম প্রধান, সাধারণ সম্পাদক জিল্লুর রহমান সহ  নেতৃবৃন্দ। সাড়ে ৬টায় হাটশ হরিপুর ইউনিয়ন মাদক প্রতিরোধ কমিটি কেক কেটে প্রতিষ্ঠা বার্ষিকী পালন করেন এসময় উপস্থিত ছিলেন বাংলাদেশ মাদক প্রতিরোধ কমিটি (বিএমপিসি) প্রতিষ্ঠাতা সভাপতি হাসিবুর রহমান রিজু, প্রচার সম্পাদক ও কুষ্টিয়া জেলা শাখার সাংগঠনিক সম্পাদক শাহারিয়া ইমন রুবেল, হরিপুর ইউনিয়ন শাখার সভাপতি এম সম্পা মাহামুদ, হাটশ হরিপুর ইউনিয়ন আওয়ামীলীগের সভাপতি মোস্তাফিজুর রহমান মিলন, হরিপুর ইউনিয়ন মাদক প্রতিরোধ কমিটির সাধারণ সম্পাদক প্রকৌশলী জুয়েল রানা সহ নেতৃবৃন্দ। বিকেলে মাদক প্রতিরোধ কমিটি পোড়াদহ ইউনিয়নের সভাপতি ডাঃ এম এ করিম এর  নেতৃত্বে গতকাল ৬ষ্ঠ প্রতিষ্ঠা বার্ষকী পালিত হয়েছে। প্রধান অতিথি ছিলেন আহাম্মদপুর ফাড়ির আইসি এসআই সোলায়মান হোসেন, বিশেষ অতিথি ছিলেন সাফ’র নির্বাহী পরিচালক মীর আব্দুর রাজ্জাক। এসময় উপস্থিত ছিলেন মাদক প্রতিরোধ কমিটি  পোড়াদহ শাখার সদস্যবৃন্দ। কয়া ইউনিয়ন মাদক প্রতিরোধ কমিটির আয়োজনে ৬ষ্ঠ প্রতিষ্ঠাবার্ষিকী উপলক্ষে কেক কাটা হয়। এসময় উপস্থিত ছিলেন কয়া ইউনিয়ন মাদক প্রতিরোধ কমিটির সাবেক সভাপতি শাহাদত হোসেন মাষ্টার, যুগ্ম সাধারণ সম্পাদক আলমগীর হোসেনসহ নেতৃবৃন্দরা।

কুষ্টিয়া ৯৭নং পূর্ব মজমপুর সরকারী প্রাথমিক বিদ্যালয়ে বই বিতরণকালে আনিসুজ্জামান ডাবলু

শেখ হাসিনার অবদান ১ তারিখে বই প্রদান

নিজ সংবাদ ॥ কুষ্টিয়া প্রেসক্লাবের সাধারণ সম্পাদক, দৈনিক আন্দোলনের বাজারের সম্পাদক ও চ্যানেল আই কুষ্টিয়া প্রতিনিধি আনিসুজ্জামান ডাবলু বলেছেন, শেখ হাসিনার অবদান ১ তারিখে বই প্রদান। তিনি বলেন, এক সময় এদেশের দরিদ্র পরিবারের সন্তানেরা বইয়ের অভাবে ঠিক মতো লেখাপড়া করতে পারতো না। আজ জননেত্রী শেখ হাসিনার অবদানে দেশের সকল প্রাথমিক ও মাধ্যমিক বিদ্যালয়ে জানুয়ারীর ১ তারিখে শিক্ষার্থীরা বই পাচ্ছে। শুধু বই নয়, শিক্ষার্থীরা পাচ্ছে শিক্ষা উপকরণসহ উপবৃত্তি। তিনি শিক্ষার্থীদের উদ্দেশ্যে বলেন, সরকারের উপহার স্বরূপ এ সুযোগ কাজে লাগিয়ে তোমরা জীবনে প্রতিষ্ঠিত হবে এই কামনা করি। গতকাল কুষ্টিয়া ৯৭নং পূর্ব মজমপুর সরকারী প্রাথমিক বিদ্যালয়ে বই বিতরণ অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথির বক্তৃতায় আনিসুজ্জামান ডাবলু এসব কথা বলেন। বিদ্যালয় পরিচালনা কমিটির সভাপতি ইউনুস আলী’র সভাপতিত্বে এবং প্রধান শিক্ষক মাকছুমা রহমানের পরিচালনায় অনুষ্ঠানে বিশেষ অতিথি ছিলেন বিদ্যালয় পরিচালনা কমিটির সাবেক সভাপতি ও অবসরপ্রাপ্ত শিক্ষক মীর আনিসুর রহমান, প্রাক্তন ছাত্রী শামীমা সুলতানা লিজু এবং ইসলামী বিশ্ববিদ্যালয়ের তথ্য, প্রকাশনা ও জনসংযোগ অফিসের সহকারী রেজিস্ট্রার মোঃ রাশিদুজ্জামান খান টুটুল। অনুষ্ঠানে উপস্থিত ছিলেন বিদ্যালয়ের সহকারী শিক্ষক  মোছাঃ আমেনা খাতুন, তহমিনা পারভীন, আফরোজা পারভীন, ছালমা পারভীন, সুমনা পারভীন ও নাজনীন আক্তারসহ অভিভাবকগণ। অনুষ্ঠানে শিক্ষার্থীদের মাঝে সরকার প্রদত্ত ১ম হতে ৫ম শ্রেণি পর্যন্ত পাঠ্য বই বিতরণ করা হয়।

আমলায় শিক্ষার্থীদের মাঝে বই বিতরনকালে কামারুল আরেফিন

বই এর অভাবে আর কোন শিক্ষার্থী পিছিয়ে পড়বে না

আমলা অফিস ॥ কুষ্টিয়ার মিরপুরে সারাদেশের ন্যায় শিক্ষার্থীদের মাঝে বিনামূল্যে নতুন বই বিতরন করা হয়েছে। গতকাল বুধবার সকালে উপজেলার আমলাসদরপুর মাধ্যমিক বিদ্যালয় অডিটোরিয়ামে আমলা সদরপুর মাধ্যমিক বিদ্যালয়ের শিক্ষার্থীদের মাঝে এ নতুন বই বিতরণ অনুষ্ঠান অনুষ্ঠিত হয়। এতে প্রধান অতিথির বক্তব্য রাখেন মিরপুর উপজেলা আওয়ামীলীগের সাধারন সম্পাদক ও উপজেলা পরিষদের চেয়ারম্যান এবং আমলাসদরপুর মাধ্যমিক বিদ্যালয়ের ম্যানেজিং কমিটির সভাপতি কামারুল আরেফিন। এসময় তিনি বলেন, বছরের প্রথম দিনে শিক্ষার্থীরা বিনামূল্যে নতুন বই পাচ্ছে। এটা জননেত্রী শেখ হাসিনার একটি বিশেষ উদ্যোগ। গরীব শিক্ষার্থীরা যাতে বছরের শুরুতেই নতুন বই পায় এজন্য সারাদেশে একত্রে এই বই বিতরণ করা হচ্ছে। তিনি আরো বলেন, আজকের শিশুরা আগামী দিনের ভবিষ্যত। আর কোন শিক্ষার্থী বই এর অভাবে স্কুলে আসবে না, শিক্ষা থেকে বঞ্চিত হবে না। বই এর অভাবে আর কোন শিক্ষার্থী পিছিয়ে পড়বে না। ডিজিটাল বাংলাদেশ গড়তে শিক্ষিত জাতি গঠনের বিকল্প নেই। প্রাথমিক ও মাধ্যমিক পর্যায়ে বিনামুল্যে বই বিতরণ সরকারের যুগান্তকারী পদক্ষেপ। এসময় বিশেষ অতিথির বক্তব্য রাখেন আমলা ইউনিয়ন পরিষদের চেয়ারম্যান আনোয়ারুল ইসলাম মালিথা, আমলা সদরপুর মাধ্যমিক বিদ্যালয়ের প্রধান শিক্ষক আব্দুল গাফ্ফার, সাবেক প্রধান শিক্ষক মকবুল হোসেন বিশ্বাস, আমলা ইউনিয়ন আওয়ামী লীগের সাধারন সম্পাদক শফিকুল ইসলাম আজম, জেলা কৃষকলীগের যুগ্ম-সাধারন সম্পাদক রমজান আলী সাহেব, আমলাসদরপুর কিন্ডার গার্টেনের পরিচালক মাসুম আল মাজী, দৌলতপুর উপজেলা যুবলীগের সাবেক যুগ্ম-আহবায়ক জাহাঙ্গীর আলম প্রমুখ। এসময় আমলাসদরপুর মাধ্যমিক বিদ্যালয়, আমলা সরকারী প্রাথমিক বিদ্যালয়, আমলাসদরপুর কিন্ডার গার্টেনের ছাত্র-ছাত্রীদের নতুন বই বিতরনের শুভ উদ্বোধন করা হয়।

 

দৌলতপুর প্রেসক্লাবে এমপি সরওয়ার জাহান বাদশা

সত্য ও বস্তুনিষ্ঠ সংবাদ পরিবেশনের মাধ্যমে দেশ ও জাতির কল্যানে কাজ করতে হবে  

শরীফুল ইসলাম ॥ কুষ্টিয়া-১ দৌলতপুর আসনের সংসদ সদস্য এ্যাড. আ, কা, ম সরওয়ার জাহান বাদশা দৌলতপুর প্রেসক্লাবের সাংবাদিকদের উদ্দেশ্যে বলেছেন, সত্য ও বস্তুনিষ্ঠ সংবাদ পরিবশেনের মাধ্যমে দেশ ও জাতির কল্যানে কাজ করতে হবে। সংবাদ পত্র ও সাংবাদিক জাতির বিবেক হিসেবে সমাজের গুরুত্বপূর্ণ ভূমিকা পালন করে। মিথ্যা ও হলুদ সাংবাদিকতা পরিহার করে সত্য সংবাদ পরিবেশ করে তা জাতির সামনে তুলে ধরতে হবে। সংবাদপত্রে সত্য কথা লিখতে হবে তা কার বিরুদ্ধে গেল তা না দেখে সঠিক তথ্য তুলে ধরতে হবে। গতকাল বুধবার দুপুর ১টায় দৌলতপুর প্রেসক্লাব কার্যালয়ে নবনির্বাচিত নির্বাহী কমিটির সদস্য ও অন্যান্য সাংবাদিকদর সাথে মতবিনিময়কালে সংসদ সদস্য এ্যাড. আ. কা. ম সরওয়ার জাহান বাদশা এসব কথা বলেন। তিনি দৌলতপুর প্রেসক্লাবের নবনির্বাচিত কমিটিকে অভিনন্দন জানানা এবং সাংবাদিকদের মধ্যে কোন বিভেদ সৃষ্টি না করে যারা প্রকৃত সাংবাদিক তাদের এক হয়ে কাজ করার আহ্বান জানান। দৌলতপুর প্রেসক্লাবের নবনির্বাচিত সভাপতি এ্যাড. এমজি মাহমুদ মন্টুর সভাপতিত্বে মতবিনিময় সভায় বিশেষ অতিথির বক্তব্য রাখেন, দৌলতপুর উপজেলা চেয়ারম্যান এ্যাড. এজাজ আহমেদ মামুন, দৌলতপুর উপজেলা নির্বাহী অফিসার শারমিন আক্তার ও দৌলতপুর কলেজের অধ্যক্ষ মো. ছাদিকুজ্জামান খান সুমন। এসময় দৌলতপুর থানার ওসি এস এম আরিফুর রহমান, মুক্তিযোদ্ধা হায়দার আলী, চিলমারী ইউনিয়নের চেয়ারম্যান সৈয়দ আহমেদ ও দৌলতপুর যুবলীগের সাধারণ সম্পাদক আব্দুল কাদেরসহ অন্যান্য সুধীজন এবং সর্বস্তরের সাংবাদিকবৃন্দ উপস্থিত ছিলেন। মতবিনিময় সভা পরিচালনা করেন দৌলতপুর প্রেসক্লাবের নবনির্বাচিত সাধারণ সম্পাদক শরীফুল ইসলাম। মতবিনিময় সভা শেষে দৌলতপুর প্রেসক্লাবের ৩ বছর মেয়াদী কার্য নির্বাহী কমিটির সভাপতি এ্যাড. এমজি মাহমুদ মন্টু, সহ-সভাপতি আহাদ আলী নয়ন, সাধারণ সম্পাদক শরীফুল ইসলাম, সহ-সম্পাদক আহমেদ রাজু, দপ্তর সম্পাদক সাইদুল আনাম, কোষাধ্যক্ষ এস এম জাহিদ হোসেন, ক্রীড়া, সাংস্কৃতিক ও প্রচার-প্রকাশনা সম্পাদক মাহফুজুল আলম, নির্বাহী সদস্য জাহাঙ্গীর আলম, সাইদুর রহমান ও সাংবাদিক আতিয়ার রহমানসহ দৌলতপুর প্রেসক্লাবের অন্যান্য সদস্য, বিভিন্ন গনমাধ্যমকর্মী, বিভিন্ন রাজনৈতিক ও সাংস্কৃতিক ব্যক্তিদের সাথে নিয়ে উপজেলা পরিষদ চত্বরে জাতির পিতা বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের প্রতিকিৃতিতে পুষ্পস্তবক অর্পন করেন। এসময় দৌলতপুর উপজেলা চেয়ারম্যান এ্যাড. এজাজ আহমেদ মামুন, দৌলতপুর উপজেলা নির্বাহী অফিসার শারমিন আক্তার ও দৌলতপুর কলেজের অধ্যক্ষ মো. ছাদিকুজ্জামান খান সুমন, দৌলতপুর থানার ওসি এস এম আরিফুর রহমান, মুক্তিযোদ্ধা হায়দার আলী ও দৌলতপুর যুবলীগের সাধারণ সম্পাদক আব্দুল কাদের উপস্থিত ছিলেন।

খোকসায় সরকারী-বেসরকারী শিক্ষা প্রতিষ্ঠানে পাঠ্যপুস্তক উৎসব

খোকসা প্রতিনিধি ॥ কুষ্টিয়ার খোকসায় পাঠ্যপুস্তক বিতরণ উৎসব-২০২০ এর অংশ হিসাবে খোকসা উপজেলায় সরকারী-বেসরকারী শিক্ষা প্রতিষ্ঠানে ছাত্র-ছাত্রীদের মাঝে বিনামূল্যে পাঠ্য পুস্তক বিতরণ করা হয়।  গতকাল বুধবার সকালে শোমসপুর মাধ্যমিক বালিকা বিদ্যালয় চত্বরে প্রধান অতিথি হিসেবে আনুষ্ঠানিকভাবে  পাঠ্যপুস্তক উৎসবের উদ্বোধন করেন জেলা আওয়ামীলীগের সভাপতি ও উপজেলা চেয়ারম্যান আলহাজ্ব সদর উদ্দিন খান।  পরে তিনি শোমসপুর সরকারী প্রাথমিক বিদ্যালয় ও শোমসপুর বহুমুখী উচ্চ বিদ্যালয়ে বই বিতরন করেন। এ সময় উপস্থিত ছিলেন মাধ্যমিক শিক্ষা অফিসার নাজমুল, উপজেলা শিক্ষা অফিসার মির্জা গোলাম মুহম্মদ বেগ, শোমসপুর হাইস্কুরে সভাপতি ফজলুল হক, শোমসপুর মাধ্যমিক বালিকা বিদ্যালয়ের সভাপতি হাজী আব্দুর রহিম খান, শোমসপুর হাইস্কুরে প্রধান শিক্ষক আয়েন উদ্দিন। এরপর প্রাথমিক পর্যায়ে বই বিতরণ করা হয় খোকসা মডেল সরকারী প্রাথমিক বিদ্যালয়, খোকসা শিশু বিদ্যালয়,  মাধ্যমিক পর্যায়ে বই বিতরণ করা হয় আলহাজ্ব সদর উদ্দিন খান মাধ্যমিক বালিকা বিদ্যালয় এবং আলহাজ্ব সদর উদ্দিন খান সরকারী প্রাথমিক বিদ্যালয়, আলহাজ্ব সদর উদ্দিন খান দাখিল মাদরাসা, ফুলবাড়ী মাধ্যমিক বিদ্যালয়, ধোকড়াকোল মাধ্যমিক বিদ্যালয়, সেনগ্রাম মাধ্যমিক বিদ্যালয়ে বই বিতরণ করেন। ইসলাম। এসব শিক্ষা প্রতিষ্ঠানে প্রধান অতিথি ছিলেন জেলা আওয়ামীলীগের সভাপতি ও উপজেলা চেয়ারম্যান আলহাজ্ব সদর উদ্দিন খান। অনুষ্ঠানে অন্যান্যের মধ্যে উপস্থিত ছিলেন উপজেলা  আওয়ামীলীগের সাধারণ সম্পাদক ও পৌর মেয়র প্রভাষক তারিকুল, থানা অফিসার ইনচার্জ মজিবুর রহমান, মাধ্যমিক শিক্ষা নাজমুল হক, উপজেলা শিক্ষা অফিসার মির্জা গোলাম মুহম্মদ বেগ, সহকারী মাধ্যমিক শিক্ষা অফিসার মোস্তাফিজুর রহমার, সহকারী শিক্ষা অফিসার শিপ্রা বিশ্বাস, প্রধান শিক্ষক মোহাম্মদ আলী, মডেল সরকারী প্রাথমিক বিদ্যালয়ের প্রধান শিক্ষক আবু হানিফ প্রমূখ। দুপুরে খোকসা-জানিপুর সরকারী মাধ্যমি বিদ্যালয় ও খোকসা জানিপুর মাধ্যমিক বালিকা বিদ্যালয়, ঈশ্বর্দী মাধ্যমিক বিদ্যালয়ে বিনামুল্যে বই বিতরন করেন কুষ্টিয়া-৪ খোকসা-কুমারখালীর সংসদ সদস্য ব্যরিষ্টার সেলিম আলতাফ জর্জ। সভাপতিত্ব করেন উপজেলা নির্বাহী অফিসার মৌসুমী জেরিন কান্তা। এ সময় উপস্থিত ছিলেন আওয়ামীলীগের সভাপতি ও বেতবাড়ীয়া ইউনিয়ন চেয়ারম্যান বাবুল আখতার, থানা অফিসার ইনচার্জ মজিবুর রহমান, মাধ্যমিক শিক্ষা নাজমুল হক, উপজেলা শিক্ষা অফিসার মির্জা গোলাম মুহম্মদ বেগ, সহকারী মাধ্যমিক শিক্ষা অফিসার মোস্তাফিজুর রহমার, সহকারী শিক্ষা অফিসার শিপ্রা বিশ্বাস, খোকসা-জানিপুর সরকারী মাধ্যমি বিদ্যালয় প্রধান শিক্ষক মোহাম্মদ আলী, আওয়ামীলীগের যুগ্ন-সাধারন সম্পাদক আল মামুন মোর্শেদ শান্ত। এ বছর প্রাথমিক লেভেলে শতাধিক বিদ্যালয়ের প্রায় ১৯ হাজার ২৪৯ জন ছাত্রছাত্রীর মধ্যে ৯০ হাজার ৬৬৩ পিচ বই বিতরণ করা হয়। মাধ্যমিক লেবেলে ২৫ টি মাধ্যমিক বিদ্যালয়  ও ৮টি মাদ্রাসা লেভেলের প্রায় ২ লক্ষ ১০ হাজার পিচ বই বিতরণ করা হয়। উল্লেখ্য বিভিন্ন ইউনিয়নের চেয়ারম্যান তাদের ইউনিয়নে বিভিন্ন স্কুলে বিনামূল্যে পাঠ্যপুস্তক বিতরণ করেন।

 

শিক্ষার্থীদের হাতে পাঠ্যপুস্তক তুলে দিলেন সদর উপজেলা চেয়ারম্যান আতাউর রহমান আতা

সুজন কর্মকার ॥ কুষ্টিয়া সদর উপজেলার বিভিন্ন শিক্ষা প্রতিষ্ঠানে পাঠ্যপুস্তক বিতরণ উৎসবে প্রধান অতিথি থেকে শিক্ষার্থীদের হাতে নতুন পাঠ্যপুস্তক তুলে দিয়েছেন, সদর উপজেলা পরিষদের চেয়ারম্যান ও শহর আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক আতাউর রহমান আতা। পাঠ্যপুস্তক বিতরণ উৎসবে প্রধান অতিথির বক্তব্যে কুষ্টিয়া সদর উপজেলা পরিষদের চেয়ারম্যান আতাউর রহমান আতা বলেন, আমাদের ছাত্র-ছাত্রীরা মেধাবী এবং তাদেরকে সব ধরনের সুযোগ-সুবিধা দেয়া হচ্ছে। শিক্ষার উন্নয়নে সরকার যা যা করার সবই করছে। আগামী প্রজন্মকে শিক্ষিত ও মেধাবী করে তুলতে সরকার বিশেষ নজর দিচ্ছে। ১ জানুয়ারি ২০২০ তারিখ বুধবার ঝাউদিয়া বাজার মাধ্যমিক বিদ্যালয়ে প্রধান অতিথি থেকে শিক্ষার্থীদের হাতে নতুন পাঠ্যপুস্তক তুলে দেন, সদর উপজেলা পরিষদের চেয়ারম্যান ও শহর আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক আতাউর রহমান আতা। এতে সভাপতিত্ব করেন ঝাউদিয়া বাজার মাধ্যমিক বিদ্যালয়ের সভাপতি প্রকৌশলী মোঃ নজরুল ইসলাম। বিশেষ অতিথি ছিলেন কুষ্টিয়া সদর উপজেলা আওয়ামী লীগের সাধারন সম্পাদক রেজাউল হক, উপজেলা মাধ্যমিক শিক্ষা অফিসার ফজলুল হক, আওয়ামীলীগ নেতা মীর রেজাউল ইসলাম বাবু প্রমুখ। এ সময় ঝাউদিয়া বাজার মাধ্যমিক বিদ্যালয়ের প্রধান শিক্ষক উত্তম কুমার বিশ্বাস, আওয়ামী লীগ নেতা ডাঃ আফিল উদ্দিন, জহুরুল ইসলাম সহ আওয়ামী লীগ ও এর অঙ্গসহযোগি সংগঠনের নেতৃবৃন্দ উপস্থিত ছিলেন। এদিকে কুষ্টিয়া সদর উপজেলার বাড়াদী, হাউজিং, বড়ইটুপি বিদ্যালয়সহ বিভিন্ন শিক্ষা প্রতিষ্ঠানে পাঠ্যপুস্তক বিতরণ উৎসবে প্রধান অতিথি থেকে শিক্ষার্থীদের হাতে নতুন পাঠ্যপুস্তক তুলে দিয়েছেন, সদর উপজেলা পরিষদের চেয়ারম্যান ও শহর আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক আতাউর রহমান আতা।

বাংলাদেশে আর ষড়যন্ত্রের রাজনীতি সফল হবে না – তথ্যমন্ত্রী

ঢাকা অফিস ॥ তথ্যমন্ত্রী ড. হাছান মাহমুদ বুধবার বলেছেন, বাংলাদেশে আর ষড়যন্ত্রের রাজনীতি সফল হবে না। নির্বাচনই হবে সরকার পরিবর্তনের একমাত্র পদ্ধতি। তিনি বলেন, ‘বিএনপিসহ কয়েকটি দল আওয়ামী লীগ এবং দলটির সভাপতি ও প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনাকে রাজনৈতিকভাবে মোকাবেলা করতে ব্যর্থ হয়ে, ষড়যন্ত্রের পথ বেছে নিয়েছে।’ তথ্যমন্ত্রী তার মন্ত্রণালয়ের সম্মেলন কক্ষে ২০২০ সালের প্রথম দিনে গত এক বছরে মন্ত্রণালয়ের অর্জন এবং এর ভবিষ্যত পরিকল্পনা সম্পর্কে জানাতে এক সংবাদ সম্মেলনের আয়োজন করেন। বিএনপি নেতা সেলিমা রহমানের একটি বক্তব্যের জবাবে হাছান বলেন, ‘দেশবাসী ও আমরা বিগত ১১ বছর ধরে সরকার উৎখাতের এ ধরনের হুমকি শুনে আসছি। কিন্তু আমি তাদেরকে বলতে চাই যে নির্বাচনই সরকার পরিবর্তনের একমাত্র পথ।’ তিনি বলেন, আওয়ামী লীগের প্রতি যদি দেশের মানুষের সমর্থন না থাকে তবে, দলটি ক্ষমতা ছেড়ে যাবে। যদিও তারা বিশ্বাস করে ষড়যন্ত্রের মাধ্যমে আওয়ামী লীগকে ক্ষমতাচ্যুত করতে চায়।’ নতুন তথ্যসচিব কামরুন নাহার ও প্রধান তথ্য অফিসার সুরথ কুমার সরকার এসময় উপস্থিত ছিলেন। তথ্যমন্ত্রী ও আওয়ামী লীগের যুগ্ম সাধারণ সম্পাদক ড. হাছান মাহমুদ বলেন, ‘আগামী নির্বাচনে যদি জনগণ আমাদের দলকে সমর্থন না জানায়, তাহলে স্বাভাবিক ভাবেই আমরা সরকারে থাকবো না। এছাড়া অন্য কোন পথ তো নেই।’ হাছান বলেন, ‘আমি দৃঢ়ভাবে বিশ্বাস করি, বাংলাদেশে অতীতের মতো আর ষড়যন্ত্রের রাজনীতি সফল হবে না এবং সরকারকে বিদায় দেয়ার একটিই পথ-সেটি হচ্ছে নির্বাচন।’ বিরোধী দলকে স্পেস দেওয়া প্রসঙ্গে ড. হাছান বলেন, ‘বাংলাদেশে আমরা বহুদলীয় গণতান্ত্রিক সমাজেই বসবাস করি। এখানে বিরোধী দল সব সময় আইনগত ভাবেই তাদের মত প্রকাশ, প্রতিবাদ করে আসছে। সাংবিধানিকভাবে যে অধিকার, সেই অধিকার সবসময় প্রয়োগ করছে। এখানে কাউকে অধিকার দেয়ার বিষয় নেই।’ তথ্যমন্ত্রী আরো বলেন, ‘মাল্টিপার্টি ডেমোক্রেসিতে আমরা বিশ্বাস করি এবং সেই অনুযায়ী দেশ পরিচালিত হচ্ছে। সুতরাং এখানে বিরোধী দল সব সময়ই সংসদে, সংসদের বাইরে তাদের মত প্রকাশ করছে। সুতরাং অধিকার দেওয়া না দেওয়ার প্রশ্ন অবান্তর।’ ‘ঢাকা মহানগর দক্ষিণের মেয়র তার বক্তব্যে আওয়ামী লীগের নতুন মেয়র প্রার্থীকে সমর্থন দেবার বিষয়ে কিছু বলেননি’ এই বিষয়ে দৃষ্টি আকর্ষণ করলে ড. হাছান বলেন, ‘দক্ষিণের মেয়রের বক্তব্য আমি শুনেছি। মেয়র বলেছেন, মন্ত্রীর মর্যাদায় তিনি মেয়রের দায়িত্ব পালন করছেন। মন্ত্রীর মর্যাদা থাকলে নির্বাচনী কার্যক্রমে অংশ গ্রহণ করার ক্ষেত্রে কিছু বিধিনিষেধ আছে। সেই বিধিনিষেধের কথাই তিনি স্মরণ করিয়ে দিয়েছেন।’ তথ্যমন্ত্রী এ সময় সবাইকে ইংরেজি নববর্ষের শুভেচ্ছা জানান। তিনি বলেন, ‘গত প্রায় একটি বছর আমি এই মন্ত্রণালয়ের দায়িত্ব পালন করছি। বিগত বছরে অনেক কাজ আমরা সফলভাবে করতে সক্ষম হয়েছি। অনেকগুলো কাজ আমরা হাতেও নিয়েছি। অনেকগুলো কাজ আমরা করতে সক্ষম হয়েছি।’ এ প্রসঙ্গে তিনি আরো বলেন, কয়েক যুগে হয়নি বা এক যুগেও হয়নি এমন কাজ, যেমন ভারতে বাংলাদেশ টেলিভিশন দেখানোর প্রচেষ্টা চালানো হয়েছিল কয়েক যুগ আগে থেকে, কিন্তু সেটি সম্ভবপর হয়নি। গত বছর ২ সেপ্টেম্বও থেকে দুরদর্শনের ফ্রি ডিশের মাধ্যমে সমগ্র ভারতে অফিসিয়ালি বাংলাদেশ টেলিভিশন প্রদর্শিত হচ্ছে। গত বছরে কয়েক মাসের মধ্যেই আমরা সেটা করতে সক্ষম হয়েছি।’ ড. হাছান বলেন, ‘এক যুগেরও বশি সময় ধরে টেলিভিশন চ্যানেলগুলোর ক্রম নির্ধারণের জন্য বারংবার তাগাদা দেয়া হয়েছিল সরকারের পক্ষ থেকে, কিন্তু সেগুলো বাস্তাবায়ন করা সম্ভবপর হয়নি। এখন ইতোমধ্যেই টেলিভিশন প্রদর্শনের ক্ষেত্রে ক্রম নির্ধারণ করা হয়েছে এবং সেই অনুযায়ী প্রদর্শিত হচ্ছে।’ তথ্যমন্ত্রী বলেন ‘বিদেশি টেলিভিশনের মাধ্যমে দেশি বিজ্ঞাপন প্রদর্শিত হচ্ছিল, সেটি আমরা বন্ধ করতে সক্ষম হয়েছি, অনেকগুলো টেলিভিশনে বিদেশি সিরিয়াল কোনো অনুমতি ছাড়া প্রদর্শিত হচ্ছিল, যেটি আমরা একটি নিয়ম নীতির মধ্যে আনতে আমরা সক্ষম হয়েছি, এখন একটি কমিটির মাধ্যমে অনুমোদন নিয়ে সেগুলো প্রদর্শিত হবে।’ মন্ত্রী বলেন, ‘বাংলাদেশে বিদেশি অবৈধ ডিটিএইচ সংযোগ অনেক জায়গায় সেগুলো চালু ছিল, আমরা ঘোষণা করেছিলাম প্রাথমিকভাবে ডিসেম্বরের ১৫ তারিখের মধ্যে এগুলো সরিয়ে নিতে হবে। পরে আমরা সময় বৃদ্ধি করেছিলাম আমাদের কাজের সুবিধার্থে যেহেতু ১৬ তারিখে বিজয় দিবস ছিল এবং অন্যান্য কাজ সেগুলোর সুবিধার্থে।’ তিনি বলেন, আজকে থেকে দেশের বিভিন্ন স্থানে অবৈধ ডিস সংযোগের বিরুদ্ধে ব্যবস্থা নেয়া শুরু হয়েছে। জেলার ডিসি ও বিভাগীয় কমিশনারদের কাছে এ ব্যাপারে নির্দেশনা পাঠানো হয়েছে।’ মন্ত্রী জানান, ‘জাতির পিতা বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমান এর ওপর তথ্য মন্ত্রণালয়ের অধীনে ভারত এবং বাংলাদেশের যৌথ প্রযোজনায় একটি ছবি নির্মিত হচ্ছে। এই ছবির কাজ অনেক দূর এগিয়ে গেছে। নবম ওয়েজবোর্ড ঘোষণা করা হয়েছে। খুব সহসা বাংলাদেশ টেলিভিশনের মতো বেতারও ভারতে সম্প্রচারিত হবে। আমরা আশা করছি এ মাসের মধ্যেই এটি করতে আমরা সক্ষম হবো।’ ড. হাছান আরো জানান, ‘চলচ্চিত্র শিল্পীদের দাবি ছিল একটি কল্যাণ ট্রাস্ট করা। সেই কল্যাণ ট্রাস্ট গঠন করা লক্ষে ট্রাস্ট আইন প্রণয়নের কাজ চূড়ান্ত পর্যায়ে রয়েছে। এটি আমাদের মন্ত্রণালয় থেকে চূড়ান্ত করে অর্থ বিভাগের অনুমোদন নিয়ে মন্ত্রিপরিষদে পাঠানো হয়েছে। আমরা আশা করছি খুব সহসা এটি সংসদে পাঠাবো।’ তিনি বলেনর, ইতিপূর্বে জাতীয় চলচ্চিত্র পুরস্কার এক বছর পিছিয়ে ছিল। এটি হালনাগাদ করা হয়েছে। আমাদের মন্ত্রণালয় থেকে ১৮টি আইন, বিধি, নীতিমালা প্রণয়ন ও হালনাগাদের কাজ চলছে। খুব সহসাই গণমাধ্যমকর্মী আইন আমরা মন্ত্রিসভায় নিয়ে যাব বলে আশা করছি।’ ড. হাছান বলেন, ‘৬৪টি জেলা আধুনিক তথ্য কমপ্লেক্স নির্মাণের জন্য একটি ডিপিপি তৈরি করা হচ্ছে, সেখানে একটি করে সিনেমা হলও থাকবে। যে হলগুলো আমরা লিজ আউট করতে পারবো, সিনেমা প্রদর্শনসহ অন্যান্য কাজে ব্যবহার করতে পারবো।’ তিনি বলেন, ‘গণমাধ্যমকর্মী আইনে কিছু সংশোধনের দরকার ছিল সেগুলো সংশোধন করা হয়েছে, সাংবাদিক ভাই-বোনদের দাবি অনুযায়ী। এটি আমরা আইন মন্ত্রণালয়ে পাঠিয়েছি, পাওয়া মাত্রই আমরা সেটি মন্ত্রিপরিষদ বিভাগে পাঠিয়ে দিব। মন্ত্রিপরিষদে অনুমোদনের পর সেটি সংসদে যাবে।’ তথ্যমন্ত্রী বলেন, ‘অনলাইন গণমাধ্যমে নিবন্ধন দেয়ার জন্য আমরা ইতিমধ্যেই সিদ্ধান্ত নিয়েছি, তবে স্বরাষ্ট্র মন্ত্রণালয়ের কাছ থেকে আমরা সব রিপোর্ট এখনো পাইনি। পেলে খুব সহসাই কিছু অনলাইন নিবন্ধন পেয়ে যাবে।’

ঢাকা ও চট্টগ্রামে সুষ্ঠু নির্বাচন হবে – সিইসি

ঢাকা অফিস ॥ ঢাকার দুই সিটি করপোরেশন এবং চট্টগ্রাম-৮ আসনের উপনির্বাচন সুষ্ঠু হবে বলে বিশ্বাস করেন প্রধান নির্বাচন কমিশনার (সিইসি) কে এম নূরুল হুদা। গতকাল বুধবার দুপুরে চট্টগ্রাম আঞ্চলিক নির্বাচন কার্যালয়ে কর্মকর্তাদের সঙ্গে বৈঠক শেষে সাংবাকিদের প্রশ্নে তিনি বলেন, “আমরা শতভাগ বিশ্বাস করি সুষ্ঠু নির্বাচন হবে, প্রতিযোগিতামূলক ও প্রতিদ্বন্দ্বিতামূলক নির্বাচন হবে এবং সব দল অংশগ্রহণ করবে। “এখানে কোনো কারচুপির আশংকা নেই।” বাংলাদেশ জাতীয় সমাজতান্ত্রিক দলের নেতা মইন উদ্দীন খান বাদলের মৃত্যুতে চট্টগ্রাম-৮ আসনে উপনির্বাচন হবে আগামী ১৩ জানুয়ারি। আর ঢাকা উত্তর ও দক্ষিণ সিটি করপোরেশনের নির্বাচন হবে ৩০ জানুয়ারি। প্রধান নির্বাচন কমিশনার নূরুল হুদা চট্টগ্রাম অঞ্চলের নির্বাচনী কর্মকর্তাদের সঙ্গে এনআইডি জালিয়াতি, উপনির্বাচনের প্রস্তুতিসহ বিভিন্ন বিষয় নিয়ে কথা বলেন। উপনির্বাচন নিয়ে চট্টগ্রামের কর্মকর্তাদের সঙ্গে আলোচনা হয়েছে জানিয়ে তিনি বলেন, “তারা বলেছেন প্রস্তুতি ভালো আছে। নির্বাচন প্রতিযোগিতামূলক হবে। এখন পর্যন্ত কোনো প্রার্থীর সমর্থকদের আচরণ বিধিবর্হিভূত হয়নি। তারা আশাবাদী নির্বাচনটা সুন্দরভাবে তুলে নিতে পারবেন। “নির্বাচনে ইভিএম নিয়ে তারা প্রস্তুত রয়েছেন। ইভিএম ব্যবহার করে তারা হয়তো নির্বাচনের ফলাফল দ্রুত দিয়ে দিতে পারবেন।” বিভিন্ন দলের অভিযোগের প্রেক্ষিতে ঢাকা ও চট্টগ্রামে ইভিএম ব্যবহারের বিষয়টি পুর্নবিবেচনার সুযোগ আছে কিনা জানতে চাইলে সিইসি বলেন, “আমরা ইভিএমে নির্বাচন করব। আমরা দেখেছি ইভিএমের মাধ্যমে নির্বাচন করলে ভোটাররা তাদের ভোটাধিকার সঠিকভাবে প্রয়োগ করতে পারবে।”