কুষ্টিয়া মুক্ত দিবসে আমজাদ আলী খানের পুষ্পস্তবক অর্পন

গতকাল ১১ ডিসেম্বর ছিল কুষ্টিয়া মুক্ত দিবস। এ দিনেই বাঙালীর শ্রেষ্ঠ সন্তানেরা পাকিস্তানী হানাদার বাহিনীকে পরাস্ত করে কুষ্টিয়াকে শত্র“মুক্ত করেন। তারপর থেকেই ১১ ডিসেম্বর কুষ্টিয়া মুক্ত দিবস হিসেবে পালন করা হয়। জেলা প্রশাসন ছাড়াও বিভিন্ন সংগঠন কুষ্টিয়া মুক্ত দিবস উপলক্ষে বিভিন্ন কর্মসূচী পালন করে থাকে। তারই প্রেক্ষিতে গতকাল সকালে কুষ্টিয়া মুক্ত দিবস উপলক্ষে কুষ্টিয়া জেলা জাতীয় শ্রমিক লীগের সাধারণ সম্পাদক আলহাজ্ব মোঃ আমজাদ আলী খানের পক্ষ থেকে কুষ্টিয়া কালেক্টরেট চত্বরে বঙ্গবন্ধুর ভাস্কর্যে পুষ্পস্তবক অর্পন করেন দলের নেতাকর্মীরা৷ এসময় কুষ্টিয়া জেলা জাতীয় শ্রমিক লীগের সহ-সভাপতি তমেজ উদ্দিন ইউসুফ, সহ-সভাপতি জিল্লুর রহমান, যুগ্ম সাধারণ সম্পাদক এইচ এম মতিউর রহমান, হামিদুল ইসলাম ও পলাশ মিয়া, সাংগঠনিক সম্পাদক ইলিয়াস হোসেন, ইসমাইল হোসেন ও তরিকুল হাসান মিন্টু, সহ-সাধারণ সম্পাদক বাদশা আলমগীর, সদস্য খোমনী, মোঃ রিপন, মোঃ হাবিবুর রহমান, মোঃ শাহ আলম, জেলা মহিলা শ্রমিক লীগের সুস্মিতা সাহা, রোকসানা বেগম, তানিয়া বেগম, ইরানী আক্তার প্রমুখ উপস্থিত ছিলেন। সংবাদ বিজ্ঞপ্তি

কালুখালীর শায়েস্তাপুর মডেল একাডেমীতে শান্তিপূর্ণভাবে বার্ষিক পরীক্ষা সমাপ্ত

ফজলুল হক ॥ গতকাল রাজবাড়ীর কালুখালী উপজেলার মৃগী ইউপির শায়েস্তাপুর মডেল একাডেমীর গণিত বিষয়ের মধ্যদিয়ে বার্ষিক পরীক্ষা শেষ হয়েছে। এ বছরে এ একাডেমীতে প্লে থেকে ৪র্থ শ্রেণী পর্যন্ত কোমলমতি শিক্ষার্থীদের শৃঙ্খলার সাথে পরীক্ষা অনুষ্ঠিত হয়েছে। পরীক্ষা চলাকালীন সার্বিকভাবে দায়িত্ব পালন করেন একাডেমীর সিনিয়র শিক্ষক লতিফা খাতুন, মিতু সুলতানা, মোঃ শাহিন, রিপা পারভিন, মিনা ইয়াসমিন ও আর্জিনা খাতুন। গতকাল সরেজমিনে গিয়ে স্কুল সম্পর্কে একাডেমীর পরিচালক মোঃ আবুল হাসেমের সাথে কথা হলে তিনি জানান আগামী ২০২০ ইং শিক্ষাবর্ষে এ প্রতিষ্ঠানে প্লে থেকে ৮ম শ্রেণী পর্যন্ত ছাত্র-ছাত্রী ভর্তি চলবে। প্রতিষ্ঠানের বৈশিষ্ট্য সমূহের মধ্যে প্রাকৃতিক মনোরম পরিবেশ, অভিজ্ঞ শিক্ষক দ্বারা নিয়মিত পাঠদান, ছাত্র ও অভিভাবক সমন্বয়ে সভা দ্বারা পরিচালিত দূরবর্তী শিক্ষার্থীদের জন্য ফ্রি ভ্যানের ব্যবস্থা, গরীব মেধাবী শিক্ষার্থীদের জন্য বৃত্তি ও উপবৃত্তি ব্যবস্থা করা সহ দুর্বল শিক্ষার্থীদের জন্য অতিরিক্ত ক্লাস, আরবি শিক্ষা বাধ্যতামূলক এবং শরীরচর্চার জন্য বিভিন্ন বিনোদনের সুবিধা আছে।

ঝিনাইদহ সীমান্ত দিয়ে অবৈধভাবে পারাপারের সময় ৪ নারী আটক

ঝিনাইদহ প্রতিনিধি ॥ ঝিনাইদহের মহেশপুর উপজেলার ভৈরবা এলাকার সাখরখাল এলাকা থেকে অবৈধভাবে পারাপারের সময় ৪ নারীকে আটক করেছে মহেশপুর ব্যাটালিয়ন (৫৮) বিজিবি। বুধবার সকালে ওই এলাকা থেকে তাদেরকে আটক করা হয়। মহেশপুর ব্যাটালিয়ন (৫৮ বিজিবি) এর অতিরিক্ত পরিচালক (উপ-অধিনায়ক) কামরুল হাসান এক প্রেস বিজ্ঞপ্তিতে জানান, সোমবার সকালে মহেশপুর উপজেলার ভৈরবা এলাকার সাখরখাল নামক এলাকায় অবৈধভাবে পারাপার হওয়া ৪ নারী অবস্থান করছে। সেসময় তাদেরকে আটক করা হয়। তিনি আরও জানান, আটককৃতরা বাংলাদেশের নাগরিক। গত ৭-৮ মাস পূর্বে কাজের জন্য ভারতে গমন করেছিল। তাদের বিরুদ্ধে বাংলাদেশ পাসপোর্ট অধ্যাদেশ ১৯৭৩ এর ১১ (১) (গ) ধারায় জেলার মহেশপুর থানায় সোপর্দ করা হয়েছে।

ইসলাম মানুষ হত্যা ও জঙ্গিবাদে বিশ্বাস করে না – স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী

ঢাকা অফিস ॥ ইসলাম মানুষ হত্যা, গণহত্যা ও জঙ্গিবাদে বিশ্বাস করে না বলে জানিয়েছেন স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী আসাদুজ্জামান খান কামাল। তিনি বলেন, ‘ধর্মীয় শিক্ষার বাস্তব প্রতিফলনের মাধ্যমে প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার হাত ধরে দেশকে এগিয়ে নিতে পারলে বাংলাদেশ পথ হারাবে না। প্রধানমন্ত্রী একজন খাঁটি মুসলমান। তিনি প্রতিদিন নামাজ আদায় ও কোরআন তেলাওয়াতের মধ্য দিয়ে রাষ্ট্রপরিচালনার কাজে হাত দেন।’ বুধবার দুপুর আড়াই টার দিকে জামালপুরের মেলান্দহের বেতমরারি মহিলা (কওমি) মাদ্রাসার ওয়াজ মাহফিলে প্রধান অতিথির বক্তব্যে তিনি এসব কথা বলেন। বাংলাদেশের কওমি মাদ্রাসাগুলোতে জঙ্গির আস্তানা থাকার ধারণাকে ভুল আখ্যায়িত করে তিনি আরও বলেন, ‘কওমি মাদ্রাসাগুলোর পাঠদান পদ্ধতি, বাস্তবচিত্র আমাদের জানা হয়ে গেছে। এই মাদ্রাসাগুলোতেই আদর্শ, পবিত্র শান্তির ধর্ম ইসলামের পূর্ণাঙ্গ শিক্ষার পাশাপাশি মাতৃভাষা শিক্ষা দেওয়া হয়। এজন্য কওমি মাদ্রাসার সনদের স্বীকৃতিও দেওয়া হয়েছে।’ এ সময় তিনি ধর্মীয় শিক্ষার পাশাপাশি মাতৃভাষায় অনুবাদ ভিত্তিক শিক্ষার উপর গুরুত্বারোপ করে বলেন, ‘ইসলাম মানুষ হত্যা, গণহত্যা ও জঙ্গিবাদ বিশ্বাস করে না। তাই আল্লামা আহমেদ শফীর অনুসারী হিসেবে বাংলাদেশকে জঙ্গিমুক্ত রাখতে ইমাম, মুয়াজ্জিন, মাওলানা ও মুফতিদের এগিয়ে আসার আহ্বান জানান তিনি। এসডিজির মূখ্য সমন্বয়ক ও বাংলাদেশ স্কাউটস’র সভাপতি আবুল কালাম আজাদের সভাপতিত্বে আরও বক্তব্য রাখেন-পাট ও বস্ত্র মন্ত্রণালয় সম্পর্কিত স্থায়ী কমিটির সভাপতি আলহাজ মির্জা আজম এমপি, জামালপুর সদর আসনের এমপি আলহাজ ইঞ্জিনিয়ার মোজাফফর হোসেন, ডিসি এনামুল হক, এসপি দেলোয়ার হোসেন পিপিএমবার, আন্তর্জাতিক বক্তা মাওলানা হাফিজুর রহমান সিদ্দিকী কোয়াকাটা, জামেয়া হুছাইনিয়ার আরাবিয়া মাদ্রাসার প্রিন্সিপাল আলহাজ মুফতী শামসুদ্দিন ও মাওলানা ওমর ফারুক প্রমুখ।

 

মাশউক’র উদ্দ্যোগে বিনামুল্যে আর্সেনিকমুক্তকরন “সনোফিল্টার” বিতরণ

গতকাল বুধবার সকাল ১১টায় কুষ্টিয়া মিরপুর উপজেলার ১১নং মালিহাদ ইউনিয়নের সংরক্ষিত আসনের মহিলা ইউপি সদস্য ছালেহা খাতুনের বাড়ীর আঙ্গীনায় মাশউক এর “পোরটেবুল ড্রিংকিং ওয়াটার ফর আর্সেনিক এক্সপোসড্ পোর পিপুল এ্যাট মিরপুর উপজেলা, কুষ্টিয়্”া প্রকল্পের মিরপুর উপজেলার মালিহাদ ইউনিয়নের আর্সেনিক আক্রান্ত ও ঝুঁকিতে থাকা দরিদ্র পরিবারের মাঝে বিনামূল্যে ৩১টি আর্সেনিক মুক্তকরন “সনোফিল্টার” বিতরণ করা হয়। বিতরন অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথি ছিলেন আলমগীর হোসেন, চেয়ারম্যান, ১১নং মালিহাদ ইউনিয়ন পরিষদ, বিশেষ অতিথি ছিলেন রাজিবুল ইসলাম সাবান, ইউপি সদস্য, ৯নং ওয়ার্ড, মালিহাদ ইউনিয়ন পরিষদ ও মোছাঃ ছালেহা খাতুন, ইউপি সদস্য (সংরক্ষিত আসন), ৭, ৮ ও ৯নং ওয়ার্ড, মালিহাদ ইউনিয়ন পরিষদ এবং সভাপতিত্ব করেন শাহ্ আবুল আওয়াল, প্রোগ্রাম কো-অর্ডিনেটর, মাশউক, কুষ্টিয়া। এছাড়াও উপস্থিত ছিলেন সংস্থার কর্মকর্তা/কর্মচারী ও প্রকল্প এলাকার উপকারভোগীবৃন্দ। অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথি মালিহাদ ইউনিয়নের চেয়ারম্যান মোঃ আলমগীর হোসেন বলেন মাশউক সংস্থার পক্ষ থেকে আপনাদের বিনামূল্যে যে ফিল্টারটি সরবরাহ করা হচ্ছে তা আপনারা মাশউক এর স্টাফদের শেখানো পদ্বতিতে ভালভাবে ব্যবহার করবেন এবং এর থেকে উপকৃত হবেন। আমাদের এলাকার আর্সেনিক আক্রান্ত ও ঝুঁকিতে থাকা দরিদ্র পরিবারের মাঝে বিনামুল্যে এই সনোফিল্টার সরবরাহ করায় তিনি মাশউক সংস্থাকে ধন্যবাদ জানান। বিশেষ অতিথিবৃন্দ বলেন আর্সেনিক নামক নিরব ঘাতকের হাত থেকে নিজেকে ও আপনাদের পরিবারের সদস্যদেকে রক্ষা করার জন্য আমাদের এই অবহেলিত এলাকায় বিনামুল্যে আর্সেনিক মুক্তকরন সনোফিল্টার সরবরাহ করায় মাশউক সংস্থাকে ধন্যবাদ জানান। সর্বশেষে সভাপতি ও অতিথিবৃন্দের উপস্থিতিতে উপকারভোগীদের মাঝে বিনামূল্যে আর্সেনিক মুক্তকরন “সনোফিল্টার” বিতরন করা হয়। সংবাদ বিজ্ঞপ্তি

গাংনীর হাড়িয়াদহ গ্রামে একই মাঠ থেকে ৬টি সেচ পাম্প চুরি 

গাংনী প্রতিনিধি ॥ মেহেরপুরের গাংনী উপজেলার রাইপুর ইউনিয়নের হাড়িয়াদহ গ্রামের একটি মাঠ থেকে ৬টি সেচ পাম্প (মটর) চুরি হয়েছে। ফলে মাঠের আবাদকৃত ক্ষেতে সেচ কাজ ব্যাহত হওয়ার সম্ভাবনা রয়েছে। গত মঙ্গলবার দিবাগত রাতের কোনো এক সময় হাড়িয়াদহ গ্রামের ভিটের মাঠ থেকে সেচ পাম্পগুলো চুরি হয়। স্থানীয়রা জানান, হাড়িয়াদহ গ্রামের হাজী এরফান মালিথার ছেলে সোহরুদ্দীন, আফছার আলীর ছেলে আমজাদ আলী ভাষান, মৃত কলিমুদ্দীন শেখের ছেলে সাবুর আলী, মৃত দিদার মন্ডলের ছেলে আনছার আলী, মৃত কাবিল আলীর ছেলে ইকতার আলী ও মৃত ওমর আলীর ছেলে জাহিদুল ইসলামের ভিটের মাঠে সেচ পাম্প রয়েছে। তারা প্রতিরাতের ন্যায় মঙ্গলবার সন্ধ্যা রাতে সেচ পাম্প বন্ধ করে বাড়ি আসে। পরের দিন বুধবার সকালে মাঠে গিয়ে দেখি প্রত্যেকের সেচ পাম্প চুরি হয়ে গেছে। সেচ পাম্প মালিক কৃষক ইকতার আলী জানান, একই মাঠের ৬টি সেচ পাম্প চুরি হওয়ায় প্রায় তিন শতাধিক আবাদি জমিতে সেচ কাজ বন্ধ করা ছাড়া উপায় নেই। কারণ ধার- দেনা করে সবাই সেচ পাম্প ক্রয় করে মাঠের ক্ষেতে সেচ দিয়ে আসছিলাম।

কুষ্টিয়া মুক্ত দিবসে জেলা বিএনপির র‌্যালী পুষ্পমাল্য অর্পন

১১ ডিসেম্বর কুষ্টিয়া মুক্ত দিবসে দিবসে কুষ্টিয়া জেলা বিএনপির উদ্যোগে পুষ্পমাল্য অর্পন করা হয়েছে। গতকাল বুধবার সকাল ১১টায় জেলা বিএনপির কার্যালয় থেকে কুষ্টিয়া কালেক্টর চত্বরে অবস্থিত শহীদ মুক্তিযোদ্ধা স্বৃতিস্তম্ভে জেলা বিএনপির পক্ষ থেকে পু®পমাল্য অর্পন করা হয়। এসময় উপস্থিত ছিলেন বিএনপির চেয়ারপার্সন বেগম খালেদা জিয়ার উপদেষ্টা ও কুষ্টিয়া জেলা বিএনপি’র সভাপতি সাবেক সংসদ সদস্য বীর মুক্তিযোদ্ধা সৈয়দ মেহেদী আহমেদ রুমী। বিএনপির জাতীয় নির্বাহী কমিটির স্থানীয় সরকার বিষয়ক সম্পাদক জেলা বিএনপি’র সাধারণ সম্পাদক সাবেক সংসদ সদস্য বীর মুক্তিযোদ্ধা অধ্যক্ষ সোহরাব উদ্দিন। উপস্থিত ছিলেন জেলা বিএনপির যুগ্ম সম্পাদক তৌহিদুল ইসলাম আলম, আব্দুর রাজ্জাক বাচ্চু, সাংগঠনিক সম্পাদক শামিউল-উল হাসান অপু, ভেড়ামারা পৌর বিএনপির সভাপতি বীর মুক্তিযোদ্ধা আবু দাউদ জেলা কৃষকদলের সভাপতি এস এম গোলাম কবির, সাধারন সম্পাদক মোকারম হোসেন মোকা, শহর কৃষকদলের সভাপতি বাবলা আমিন চৌধুরী, জেলা স্বেচ্ছাসেবকদলের যুগ্ম-সম্পাদক বকুল আলী। সংবাদ বিজ্ঞপ্তি

সাহিত্যিক সৈয়দা রাশিদা বারী কবি জসীমউদ্দীন পুরস্কারে ভূষিত  

নিজ সংবাদ ॥ বিশিষ্ট কবি, সাহিত্যিক ও সাংবাদিক সৈয়দা রাশিদা বারী পরিষদ আয়োজিত ‘জসীমউদ্দীন হল’ এ গুণীজন সম্মাননা ও সাংস্কৃতিক অনুষ্ঠানে এ পুরস্কার প্রদান করা হবে। অনুষ্ঠানে পরিষদ সভাপতি অ্যাডভোকেট সাহিদুন্নবী এর সভাপতিত্বে প্রধান অতিথি হিসেবে উপস্থিত থাকবেন সাবেক স্থানীয় সরকার, পল্লী উন্নয়ন ও সমবায় মন্ত্রী আলহাজ্ব ইঞ্জিনিয়ার খন্দকার মোশাররফ হোসেন এম.পি। বিশেষ অতিথি হিসেবে উপস্থিত থাকবেন বাংলাদেশের সংবিধান প্রণেতা শীর্ষ আইনজ্ঞ ব্যারিস্টার এম. আমীর উল ইসলাম, ফরিদপুর-এর জেলা প্রশাসক অতুল সরকার, পুলিশ সুপার মোঃ আলীমুজ্জামান (বিপি এম), ড. এম ওয়াজেদ মিয়া মেমোরিয়াল ফাউন্ডেশন এর প্রতিষ্ঠাতা ও কেন্দ্রীয় সভাপতি এ, কে. এম ফরহাদুল কবির। বাংলা সাহিত্যে সার্বিক শাখায় অনন্য অবদানের জন্য সৈয়দা রাশিদা বারী কবি জসীমউদ্দীন পদক ও সম্মাননা পাচ্ছেন। এ যাবৎ রাশিদা বারী শতাধিক গ্রন্থ প্রণয়ন করেছেন। তিনি ঢাকাস্থ জাতীয় মাসিক স্বপ্নের দেশ পত্রিকার সম্পাদক ও প্রকাশক। বাংলাদেশ বেতার, টেলিভিশন ও চলচ্চিত্রের গীতিকার তিনি। তাঁর উল্লেখযোগ্য পুরস্কারের মধ্যে- ভারতীয় আন্তর্জাতিক আলো আভাস সাহিত্য সংস্থা ও বিশ্ব বঙ্গ সাহিত্য ও সংস্কৃতি সম্মেলন এর পুরস্কার ও সম্মাননা, কবি বে-নজীর আহমদ সাহিত্য পুরস্কার, জাতীয় সাংবাদিক সংস্থা কর্তৃক পুরস্কার, বাংলাদেশ লেখিকা সংঘের সংবর্ধনা ইত্যাদি।

কুমারখালীতে সরাসরি কৃষকের কাছ থেকে ধান সংগ্রহ কার্যক্রমের উদ্বোধন

কুমারখালী প্রতিনিধি ॥ আমন সংগ্রহ মৌসুম ২০১৯-২০ অর্থবছরে কুষ্টিয়ার কুমারখালীতে উন্মুক্ত লটারীর মাধ্যমে নির্বাচিত কৃষকদের নিকট থেকে সরাসরি ধান সংগ্রহ কার্যক্রম উদ্বোধন করা হয়েছে। গতকাল বুধবার বেলা ১১টায় উপজেলার নন্দলালপুর ইউনিয়ন পরিষদ চত্বরে সরাসরি কৃষকদের কাছ থেকে ধান সংগ্রহ কার্যক্রমের আনুষ্ঠানিক উদ্বোধন করা হয়েছে। উপজেলা প্রশাসন ও উপজেলা খাদ্য বিভাগ আয়োজিত এই উদ্বোধনী অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথি হিসাবে উপস্থিত ছিলেন কুষ্টিয়ার জেলা প্রশাসক মো: আসলাম হোসেন। এতে সভাপতিত্ব করেন উপজেলা নির্বাহী অফিসার রাজীবুল ইসলাম খান। এ সময় সহকারি কমিশনার (ভুমি) এম. এ মুহাইমিন আল জিহান, উপজেলা কৃষি অফিসার উপজেলা কৃষি অফিসার দেবাশীষ কুমার দাস, উপজেলা খাদ্য নিয়ন্ত্রক মোজাম্মেল হক, ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা মো: জামসেদ ইকবালুর রহমান, খাদ্য পরিদর্শক মাসুদ রানা, নন্দলালপুর ইউনিয়ন পরিষদের চেয়ারম্যান মো. নওশের আলী বিশ্বাস প্রমূখ উপস্থিত ছিলেন। উপজেলা খাদ্য নিয়ন্ত্রকের কার্যালয় সূত্রে জানাগেছে, চলমান আমন সংগ্রহ মৌসুমে (২০১৯-২০ অর্থবছরে) কুমারখালী উপজেলার ১১টি ইউনিয়ন থেকে এক হাজার ৬৮২ মেট্রিক টন ধান সংগ্রহ করা হবে। ইতোমধ্যে উন্মুক্ত লটারির মাধ্যমে কৃষক নির্বাচন সম্পন্ন করা হয়েছে। নন্দলালপুর ইউনিয়নের এলাঙ্গী এলাকার কৃষক মো. বাবুল হোসেন জানান, তিনি লটারির মাধ্যমে নির্বাচিত হয়েছেন, তাই ২৬ টাকা কেজি দরে ধান বিক্রি করতে পারছেন। এতে তিনি খুবই উপকৃত হবেন বলে মন্তব্য করেন। সদরপুর গ্রামের বিল্লাল সেখ নামের আরেকজন কৃষক লটারিরর মাধ্যমে নির্বাচিত হওয়ায় তিনি ধান দিতে এসেছেন ইউনিয়ন পরিষদে।

গাংনীতে ৪৫ টাকা দরে পেঁয়াজ বিক্রির উদ্বোধন

গাংনী প্রতিনিধি ॥ মেহেরপুরের গাংনী উপজেলা প্রশাসনের উদ্যোগে টিসিবি’র মাধ্যমে ৪৫টাকা কেজি দরে পেঁয়াজ বিক্রির উদ্বোধন করা হয়েছে। গতকাল বুধবার সকাল ১০ টার সময় গাংনী উপজেলা পরিষদ প্রাঙ্গণে আনুষ্ঠানিকভাবে পেঁয়াজ বিক্রির উদ্বোধন করা হয়। পেঁয়াজের বাজার নিয়ন্ত্রণে সরকারীভাবে এই স্বল্পমূল্যে পেঁয়াজ বিক্রির উদ্যোগকে সাধুবাদ জানিয়েছেন সুধীসমাজ। উপজেলা প্রশাসন থেকে জানা গেছে, গাংনী উপজেলা নির্বাহী অফিসারের চাহিদানুযায়ী মেহেরপুর জেলা প্রশাসক গাংনীতে স্বল্প মূল্যে বিক্রির জন্য ৬ মে.টন পেঁয়াজ বরাদ্দ দিয়েছেন। উপজেলা নির্বাহী অফিসার দিলারা রহমান জানান, প্রয়োজনে আরও বেশী পরিমাণ পেঁয়াজ সরবরাহ করা হবে। ইতোমধ্যে বাজারে  পেঁয়াজের দাম কমতে শুরু করেছে। প্রত্যেককে ২ কেজি করে পেঁয়াজ দেয়া হচ্ছে। সকল শ্রেণি-পেশার মানুষ (মহিলাসহ)  সারিবদ্ধভাবে দাঁড়িয়ে পেঁয়াজ সংগ্রহ করে।  উপজেলা নির্বাহী অফিসার দিলারা রহমানের সভাপতিত্বে উদ্বোধন করেন গাংনী উপজেলা পরিষদ চেয়ারম্যান ও জেলা আ’লীগের সাধারণ সম্পাদক এমএ খালেক। এসময় উপস্থিত ছিলেন গাংনী উপজেলা সহকারী কমিশনার (ভূমি) কর্মকর্তা ইয়ানুর রহমান, গাংনী থানার অফিসার ইনচার্জ ওবাইদুর রহমান, গাংনী পৌর আ’লীগের সভাপতি ছানোয়ার হোসেন বাবলু, সাধারণ সম্পাদক আনারুল ইসলাম বাবু, উপজেলা যুবলীগের সভাপতি মোশারফ হোসেন, সাংবাদিক আমিরুল ইসলাম অল্ডামসহ রাজনৈতিক নেতৃবৃন্দ,  স্থানীয় গণ্যমান্য ব্যক্তিবর্গ।

নুর আলম সভাপতি ॥ নুরুন্নবী নবীন সম্পাদক

দৌলতপুরে জাতীয় যুব সংহতির ত্রি-বার্ষিক সম্মেলন অনুষ্ঠিত

নিজ সংবাদ ॥ কুষ্টিয়ার দৌলতপুরে জাতীয় পার্টির জাতীয় যুব সংহতির ত্রি-বার্ষিক সম্মেলন অনুষ্ঠিত হয়েছে। দৌলতপুর উপজেলা জাতীয় যুব সংহতির আয়োজনে গতকাল বুধবার দুপুরে উপজেলার আল্লারদর্গা নুরুজ্জামান বিশ্বাস অডিটোরিয়ামে এ সম্মেলন অনুষ্ঠিত হয়। এতে প্রধান অতিথি ছিলেন জাতীয় যুব সংহতির কেন্দ্রীয় সহ-সভাপতি হেলাল উদ্দীন। সম্মেলনে দৌলতপুর উপজেলা জাতীয় যুব সংহতির আগামী ৩ বছরের জন্য নুর আলমকে সভাপতি ও নুরুন্নবী নবীনকে সম্পাদক ঘোষনা করা হয়। জাতীয় যুব সংহতির দৌলতপুর উপজেলার আহবায়ক নুরে আলমের সভাপতিত্বে বিশেষ অতিথি ছিলেন জাতীয় পার্টির কেন্দ্রীয় তথ্য গবেষনা সম্পাদক সুমন আশরাফ, কুষ্টিয়া জেলা জাতীয় পার্টির সভাপতি নাফিজ আহমেদ খান টিটু, কেন্দ্রীয় নির্বাহী কমিটির সদস্য ও জেলা জাতীয় পার্টির সাধারন সম্পাদক শাহরিয়ার জামিল জুয়েল, জেলা জাতীয় পার্টির সহ-সভাপতি ও সাবেক উপজেলা চেয়ারম্যান আলী আকবর, যুগ্ম সাধারন সম্পাদক রিনা নাসরিন, কুষ্টিয়া জেলা জাতীয় যুব সংহতির আহবায়ক প্রকৌশলী ফিরোজ-উজ-জামান, সদস্য সচিব কাজী আব্দুল বাকী, সহ-সভাপতি দেলোয়ার হোসেন, জেলা জাতীয় পার্টির মানবাধিকার বিষয়ক সম্পাদক  নাজমুল হুদা, দৌলতপুর উপজেলা জাতীয় পার্টির আহবায়ক আব্দুস সাত্তার, যুগ্ম সম্পাদক আব্দুল্লাহ আল মামুন পিয়ার। সম্মেলনে বক্তারা বলেন, এরশাদ ৯ বছর সফলতার সঙ্গে দেশ ও মানুষের জন্য কাজ করেছেন, তিনি স্বৈরাচার হতে পারেন না। দেশের মানুষ জাপাকে আরো শক্তিশালী দল হিসেবে দেখতে চায়। ৯১ সালের পর থেকে জুলুম-নির্যাতন আর হামলা-মামলা দিয়ে জাপাকে দুর্বল করার চেষ্টা হয়েছে। জাতীয় পার্টিই তৃতীয় বৃহত্তম রাজনৈতিক শক্তি। শত বাধা উপেক্ষা করে জাপা রাজনীতির মাঠে থাকবে। নেতারা বলেন, অন্যান্য যুব সংগঠনের মত জাতীয় যুব সংহতির নেতারা সন্ত্রাস লালন করেনি, ক্যাসিনো ব্যবসা করেনি, হুন্ডা-গুন্ডা লালন-পালন করেনি। উপজেলা জাতীয় যুব সংহতির সদস্য সচিব দিনার হোসেন বুলবুলের সঞ্চালনায় সম্মেলনে জাতীয় পার্টির নেতারা ছাড়াও উপজেলা জাতীয় যুব সংহতির কয়েক হাজার নেতাকর্মী উপস্থিত ছিলেন।

গ্রাহক সচেতনতায় পল্লী বিদ্যুতের উঠান বৈঠক

কাঞ্চন কুমার ॥ সেবা নিয়ে গ্রাহকের দোড় গোড়ায় এখন কুষ্টিয়া পল্লী বিদ্যুৎ সমিতি। ঘরে ঘরে বিদ্যুৎ পৌঁছে দেওয়ার পাশাপাশি করছে সাধারন মানুষকে সচেতন। বিদ্যুতের সঠিক ব্যবহার, দূর্ঘটনা রোধ, মুজিববর্ষ, বর্তমান সরকারের সাফল্য নিয়ে হাজির হচ্ছেন গ্রাহকের উঠানে। করছেন উঠান বৈঠক। এ কার্যক্রমের ফলে সাধারন মানুষ পল্লী বিদ্যুতের সেবা পাচ্ছে খুব সহজেই। গ্রাহকরা তাদের সুবিধা অসুবিধা বলতে পারছেন কর্মকর্তাদের। বর্তমানে নেই পূর্বের ন্যায় অভিযোগও। বিশেষ করে কুষ্টিয়া পল্লী বিদ্যুৎ সমিতির আওতায় কুষ্টিয়ার মিরপুর জোনাল অফিস। দুর্নীতি, ঘুষ, গ্রাহক হয়রানি এক সময়ের নিত্যদিনের ঘটনা। সেই সাথে ছিলো লোডশেডিং আর বিলের ভোগান্তি। এক সময়ের এত অনিয়ম আর অভিযোগের গ্লানি নিয়ে ঘুরে দাঁড়িয়েছে পল্লী বিদ্যুতের এই অফিসটি। বর্তমানে গ্রাহক সেবা এবং নিরাপত্তায় তাদের মুল লক্ষ। গ্রাহকদের সচেতনতা বৃদ্ধির লক্ষে নিরলসভাবে কাজ করে যাচ্ছে কর্মকর্তারা।  মিরপুর জোনাল অফিসের দেওয়া তথ্য মতে, চলতি বছরের জুন মাস অবদি উপজেলায় ১ হাজার ৪শ ৫৩ দশমিক ৮৭ কিলোমিটার বিদ্যুতের লাইন চালু রয়েছে। ৩৩/১১ কেভি একটি উপকেন্দ্রের মাধ্যমে ১৭০টি গ্রামের ৮৫ হাজার ৬৭জন গ্রাহকের কাছে বিদ্যুতের সংযোগ দেওয়া হয়েছে। উপজেলার সদরপুর ইউনিয়নের গ্রাহক বেলাল হোসেন জানান, মিরপুর পল্লী বিদ্যুত অফিস কয়েক বছর আগে যেমন ছিলো তার অনেক পরিবর্তন হয়েছে। লাইন নিতে গেলে পদে পদে টাকা দিতে হতো। মাঝে মাঝেই বিলে ভুয়া বিল চলে আসতো। এখন আর তেমনটা নেই। হাবিবুর রহমান জানান, শুনেছিলাম নতুন মিটার নিতে গেলে বিদ্যুতের অফিসে ১/২ বছর ঘোরা লাগতো, টাকা বেশি দিতে হতো। কিন্তু আমি কিছুদিন আগে একটা মিটার নিয়েছি। অনলাইনে আবেদন করি। কয়েকদিনের মধ্যেই আমি মিটার  পেয়েছি। স্কুল শিক্ষার্থী সোহাগ জানান, রাতে লোড শেডিং এর যন্ত্রনায় ঠিকমতো পড়তে পারতাম না। এখন বিদ্যুতের লোড শের্ডি নেই বললেই চলে।  কুষ্টিয়া পল্লী বিদ্যুৎ সমিতির মিরপুর জোনাল অফিসের ডেপুটি জেনারেল ম্যানেজার এনামুল হক বলেন, আমি ২০১৮ সালে এই কুষ্টিয়া পল্লী বিদ্যুৎ সমিতির মিরপুর জোনাল অফিসের ডেপুটি জেনারেল ম্যানেজার হিসাবে যোগদান করার পর থেকে এই অফিসে শতভাগ দুর্নীতিমুক্ত করার চেষ্টা করছি। বর্তমান সরকারের উন্নয়ন কর্মকান্ড, ভিশন, গ্রাহক সেবা, গ্রাহকের সুবিধা অসুবিধা, পল্লী বিদ্যুতের সঠিক কর্মকান্ড সাধারন মানুষের দোড় গোড়ায় পৌঁছে দিচ্ছি। আমরা গ্রাহকের বাড়ী গিয়ে উঠান বৈঠক পরিচালনা করছি। এ বছর জুন মাস থেকে নভেম্বর মাস পর্যন্ত উপজেলায় প্রায় ১৫০টি উঠান বৈঠকের মাধ্যমে গ্রাহকদের সচেতন করছি। “আলোর ফেরিওয়ালা” কর্মসূচির মাধ্যমে উপজেলার প্রায় প্রতিটি গ্রামে বিদ্যুৎ পৌঁছে দেওয়ার ব্যবস্থা করেছি। গ্রাহকদের হয়রানি রোধে আমরা “ওয়ান পয়েন্ট” নামের সেবার মাধ্যমে সেবা দিচ্ছি। একই স্থানে গ্রাহকরা সকল সেবা পাবে। তিনি আরো বলেন, মিরপুর উপজেলায় বিদ্যুতের কোন ঘাটতি না থাকায় কোন লোড শেডিং নেই। আর যদি রক্ষনাবেক্ষন ও বিদ্যুত লাইনের আসে পাশে গাছের ডালপালা পরিষ্কার করতে হয় তাহলে মাইকিং, নোটিশ দিয়ে এবং মিরপুর জোনাল অফিসের নামে ফেসবুক পেজের মাধ্যমে গ্রাকদের সচেতন করছি। তিনি বলেন, উঠান বৈঠকে গ্রাহকদের ব্যাপক সাড়া পাওয়া গেছে। তারা তাদের অসুবিধার কথা সরাসরি আমাদের জানায়। আমরা তাৎক্ষনিক সেটা সমাধানের ব্যবস্থা করি। আমার এ উঠান বৈঠকে এলাকার গণ্যমান্য ব্যক্তিবর্গ, জনপ্রতিনিধিদের সাথে নিয়ে গ্রাহকদের সচেতন করে আসছি। তিনি বর্তমান অফিসের চিত্র তুলে ধরে বলেন, ঘুষ, দুর্নীতি, দালালমুক্ত, শতভাগ গ্রাহক হয়রানি রোধ এবং সেবা নিশ্চিত করতে পুরো অফিস সিসিটিভি ক্যামেরার আওতায় এনেছি। গ্রাহকদের জন্য রয়েছে অভিযোগ বক্সও। বিগত বছর যেখানে মিরপুর জোনাল অফিসের গ্রাহকদের কাছে বকেয়া মাস ছিলো ১ দশমিক ২০ শতাংশ। বর্তমানে রয়েছে মাত্র দশমিক ৮৮ শতাংশ। যা কুষ্টিয়া পল্লী বিদ্যুতের বিগত বছরের রেকর্ড ভেঙ্গে দিয়েছে। বিগত বছরের তুলনায় সিস্টেম লস কমেছে ১ দশমিক ২০ শতাংশ। কুষ্টিয়া পল্লী বিদ্যুৎ সমিতির জেনারেল ম্যানেজার (জিএম) হারুনÑঅর রশিদ জানান, কুষ্টিয়া পল্লী বিদ্যুত সমিতির আওতায় ৬টি উপজেলায় বর্তমানে ৪ লাখ ৬২ হাজার ৪শত ৭৫জন গ্রাহক বিদ্যুতের সুবিধা পাচ্ছেন। আমাদের অর্ন্তগত ৯৩৯টি গ্রামের মধ্যে ইতিমধ্যে ৯০০ গ্রামে শতভাগ বিদ্যুতের সেবা নিশ্চিত করা হয়েছে। বাঁকি গুলো খুব শিঘ্রই করা হবে। তিনি আরো জানান, আমরা উঠান বৈঠকের মাধ্যমে গ্রাহকদের সচেতন করে আসছি। এতে বিদ্যুতের অপচয়, দুর্ঘটনা অনেক কমে গেছে। সেই সাথে দুর্নীতি প্রায় বন্ধ হয়ে এসেছে। আমরা গ্রাহক সেবা নিশ্চিতে কাজ করে যাচ্ছি। গ্রাহক এখন দোড় গোড়ায় বসেই পল্লী বিদ্যুতের সেবা পাচ্ছেন। অনলাইনে আবেদন, টাকা জমা দিতে পারছেন। মোবাইলে বিলও পরিশোধ করছেন। ডিজিটাল বিলিং সিস্টেমের মাধ্যমে ভুল কম হচ্ছে।

ঝিনাইদহে ফেন্সিডিলসহ মাদক ব্যবসায়ী আটক

ঝিনাইদহ প্রতিনিধি ॥ ঝিনাইদহের মহেশপুর উপজেলার পুড়াপাড়া এলাকা থেকে ফেন্সিডিলসহ শুকুর আলী (৩৫) নামের এক মাদক ব্যবসায়ীকে আটক করেছে র‌্যাব। বুধবার সকালে তাকে আটক করা হয়। শুকুর আলী যশোরের চৌগাছা উপজেলার শুকপুকুড়িয়া গ্রামের নুর মোহাম্মদ আলীর ছেলে। র‌্যাব-৬, সিপিসি-২ ঝিনাইদহ ক্যাম্পের কোম্পানী কমান্ডার মাসুদ আলম জানান, গোপন সংবাদের ভিত্তিতে তারা জানতে পারে মহেশপুর উপজেলার পুড়াপাড়া বাজার এলাকায় ফেন্সিডিল কেনাবেচা হচ্ছে। এমন সংবাদের ভিত্তিতে সেখানে অভিযান চালায় তারা। এসময় অন্যরা পালিয়ে গেলে শুকুর আলীকে গ্রেফতার করা হয়। সেসময় তার কাছে থাকা ব্যাগ থেকে ৫শত ৭বোতল ফেন্সিডিল উদ্ধার করা হয়। এ ঘটনায় মহেশপুর থানায় মামলা হয়েছে।

প্রধানমন্ত্রী কর্তৃক প্রদত্ত রোকেয়া পদকপ্রাপ্ত কুষ্টিয়ার মহীয়সী নারী বেগম নূরজাহানকে সংবর্ধনা

নিজ সংবাদ ॥ প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা কর্তৃক প্রদত্ত রোকেয়া পদকপ্রাপ্ত কুষ্টিয়া জেলার মহীয়সী নারী বেগম নূরজাহানকে সংবর্ধনা প্রদান করা হয়েছে। বাঙালি জাতির নারী শিক্ষা ও জাগরণের অগ্রদূত বেগম রোকেয়ার জন্ম ও মৃত্যু দিবস উপলক্ষ্যে, কুষ্টিয়া সরকারি মহিলা কলেজের আয়োজনে বেগম নূরজাহানকে এ সংবর্ধনা প্রদান করা হয়। এতে প্রধান অতিথির বক্তব্য রাখেন সংবর্ধিত অতিথি বাংলাদেশ মহিলা সমিতি কুষ্টিয়া জেলা শাখার সভাপতি প্রধানমন্ত্রী কর্তৃক প্রদত্ত রোকেয়া পদকপ্রাপ্ত কুষ্টিয়া জেলার মহীয়সী নারী বেগম নূরজাহান। তিনি, নারীদেরকে ঘরের মধ্যে বসে না থেকে দেশের উন্নয়ন-অগ্রগতির জন্য কাজ করার আহবান জানান। রোকেয়া দিবস উদ্যাপন উপলক্ষ্যে মঙ্গলবার সকাল সাড়ে ১০ টায় কুষ্টিয়া সরকারি মহিলা কলেজের মুক্তমঞ্চে বেগম নূরজাহানকে সংবর্ধনা, আলোচনা সভা ও সাংস্কৃতিক অনুষ্ঠানের আয়োজন করা হয়। অনুষ্ঠানে সভাপতিত্ব করেন কুষ্টিয়া সরকারি মহিলা কলেজের অধ্যক্ষ প্রফেসর মোঃ সফিকুর রহমান খান। মুখ্য আলোচক ছিলেন মুজিবনগর সরকারি ডিগ্রি কলেজের প্রাক্তন অধ্যক্ষ অধ্যাপক স্বপন কুমার রায়। এ সময় কুষ্টিয়া সরকারি মহিলা কলেজের উপাধ্যক্ষ প্রফেসর শিশির কুমার রায়সহ অন্যান্য শিক্ষক ও শিক্ষার্থীবৃন্দ উপস্থিত ছিলেন।

জেলা মুক্তিযোদ্ধা সাংগঠনিক কমান্ডের উদ্যোগে কুষ্টিয়া হানাদার মুক্ত দিবস উদ্যাপন

নিজ সংবাদ ॥ বাংলাদেশ মুক্তিযোদ্ধা সংসদ কুষ্টিয়া জেলা সাংগঠনিক কমান্ডের উদ্যোগে, বর্ণাঢ্য কর্মসূচির মধ্যদিয়ে কুষ্টিয়া হানাদার মুক্ত দিবস পালন করা হয়েছে। কুষ্টিয়া জেলা আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক বীর মুক্তিযোদ্ধা আজগর আলীর নেতৃত্বে, মুক্তিযোদ্ধা সাংগঠনিক কমান্ডের কমান্ডার ও কুষ্টিয়া জেলা ইউনিট কমান্ডের সাবেক জেলা কমান্ডার বীর মুক্তিযোদ্ধা মানিক কুমার ঘোষ’র সার্বিক তত্বাবধানে ১১ ডিসেম্বর বুধবার সকালে কুষ্টিয়া মেডিক্যল এসিসটেন্ট ট্রেনিং স্কুল (ম্যাটস) ভবনের সামনে থেকে বীর মুক্তিযোদ্ধাদের বিশাল এক শোভাযাত্রা জেলা কালেক্টর চত্বর অভিমুখে রওনা হয়। সেখানে পোঁছে জাতির পিতা বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের নব নির্মিত ভাস্কর্য্যে ফুল দিয়ে শ্রদ্ধা নিবেদন করেন, জেলা আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক বীর মুক্তিযোদ্ধা আজগর আলী, মুক্তিযোদ্ধা সাংগঠনিক কমান্ডের কমান্ডার ও কুষ্টিয়া জেলা ইউনিট কমান্ডের সাবেক জেলা কমান্ডার বীর মুক্তিযোদ্ধা মানিক কুমার ঘোষ, ডেপুটি কমান্ডার বীর মুক্তিযোদ্ধা মকবুল হোসেন, ডেপুটি কমান্ডার যুদ্ধাহত বীর মুক্তিযোদ্ধা ইকবাল মাসুদ, কুষ্টিয়া সদর উপজেলা কমান্ডের সাবেক উপজেলা কমান্ডার বীর মুক্তিযোদ্ধা খন্দকার লিয়াকত আলী নীলা, সাবেক উপজেলা কমান্ডার বীর মুক্তিযোদ্ধা শহিদুল হক, সাবেক উপজেলা কমান্ডার যুদ্ধাহত বীর মুক্তিযোদ্ধা নুরুল ইসলাম (নুরু), সাবেক সহকারী কমান্ডার বীর মুক্তিযোদ্ধা সাইদুর রহমান, সাবেক সহকারী কমান্ডার শেখ আবু হানিফ, যুদ্ধাহত বীর মুক্তিযোদ্ধা জহুরুল হক, বীর মুক্তিযোদ্ধা জাহিদ হোসেন, বীর মুক্তিযোদ্ধা স্বপন কুমার নাগ, বীর মুক্তিযোদ্ধা আহসান হাবিব দুলাল প্রমুখ মুক্তিযোদ্ধা নেতৃবৃন্দ। অন্যান্যের মধ্যে উপস্থিত ছিলেন বীর মুক্তিযোদ্ধা মিজানুর রহমান, যুদ্ধাহত বীর মুক্তিযোদ্ধা শেখ নিজাম উদ্দিন, বীর মুক্তিযোদ্ধা জিল্লুর রহমান, শহিদুল ইসলাম, মকবুল হোসেন, আবু সাঈদ, কাইয়ুম নাজার, ডাঃ মতিয়ার রহমান, দাউদ আলী, বিল্লাল মাস্টার, আমির হোসেন, আ: করিম, সুবেদার আবুল খায়ের, ক্যাপ্টেন শফিকুর রহমান প্রমুখ সহ দুইশতাধীক বীর মুক্তিযোদ্ধা উপস্থিত ছিলেন। পরে কুষ্টিয়ার জেলা প্রশাসক মোঃ আসলাম হোসেনের সার্বিক তত্বাবধানে ভাস্কর্য্যরে সামনে জাতীয় পতাকা ও মুক্তিযোদ্ধা পাতাকা উত্তোলন, মহান স্বাধীনতা যুদ্ধ ও বাংলাদেশের সকল গণতান্ত্রিক আন্দোলন-সংগ্রামে শহীদ বীর যোদ্ধাদের প্রতি শ্রদ্ধা জানিয়ে ১ মিনিট নিরবতা পালনসহ তাদের রুহের মাগফেরাত কামনা করে দোয়া এবং মোনাজাত করা হয়। এ সময় পুলিশ সুপার এস এম তানভীর আরাফাত পিপিএম (বার), অতিরিক্ত জেলা প্রশাসক (সার্বিক) আজাদ জাহান, স্থানীয় সরকারের উপ-পরিচালক মৃনাল কান্তি দে, অতিরিক্ত পুলিশ সুপার মুস্তাফিজুর রহমান, সদর উপজেলা আ’লীগের সভাপতি এ্যাডঃ আ.স.ম আকতারুজ্জামান মাসুম, সদর উপজেলা পরিষদের চেয়ারম্যান ও শহর আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক আতাউর রহমান আতা, সদর উপজেলার নির্বাহী কর্মকর্তা জুবায়ের হোসেন চৌধুরী, সদর উপজেলা আ’লীগের সাধারণ সম্পাদক রেজাউল হক, এনডিসি এ.বি.এম. আরিফুল ইসলামসহ জেলা প্রশাসনের সর্বস্তরের কর্মকর্তা-কর্মচারীবৃন্দ উপস্থিত ছিলেন। পরে জেলা প্রশাসক মোঃ আসলাম হোসেনের নেতৃত্বে জেলা প্রশাসনের আনন্দ মিছিলের সাথে বীর মুক্তিযোদ্ধাদের আনন্দ শোভাযাত্রাটি জেলা কালেক্টর চত্বর থেকে রওনা হয়ে শহরের মজমপুর গেটে যায়। সেখানে বীর মুক্তিযোদ্ধাবৃন্দ বঙ্গবন্ধুর ম্যুরালে ফুলেল শ্রদ্ধাঞ্জলী অর্পন করেন।

খুলনার মেয়র আলহাজ্ব তালুকদার আব্দুল খালেককে নর্থ ওয়েস্টার্ন ইউনিভার্সিটির পক্ষ থেকে আন্তরিক শুভেচ্ছা ও অভিনন্দন

নর্থ ওয়েস্টার্ন ইউনিভার্সিটি বোর্ড অব ট্রাস্টিজের মাননীয় চেয়ারম্যান ও খুলনা সিটি কর্পোরেশনের মেয়র আলহাজ্ব তালুকদার আব্দুল খালেক পুনরায় খুলনা মহানগর আওয়ামী লীগের সভাপতি নির্বাচিত হওয়ায় নর্থ ওয়েস্টার্ন ইউনিভার্সিটির ভাইস-চ্যান্সেলর প্রফেসর ড. তারাপদ ভৌমিক বিশ্ববিদ্যালয়ের পক্ষ থেকে আন্তরিক অভিনন্দন ও ফুলেল শুভেচ্ছা জ্ঞাপন করেন। তার কর্মদক্ষতা ও বলিষ্ঠ নেতৃত্ব এতদঞ্চলের সার্বিক উন্নয়নে অগ্রণী ভূমিকা রাখবে এবং বিশেষ করে খুলনাসহ দেশের দক্ষিণাঞ্চলের উন্নয়নে নতুন যুগের সৃষ্টি করবে বলে আশাবাদ ব্যক্ত করা হয়। সংক্ষিপ্ত বক্তব্যে মেয়র মহোদয় বঙ্গবন্ধুর আদর্শে দেশরতœ প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার নেতৃত্বে দেশপ্রেমের মাধ্যমে বাঙালী জাতির কষ্টার্জিত স্বাধীনতা রক্ষার পাশাপাশি দেশকে সমৃদ্ধির দিকে এগিয়ে নিতে সকলকে ঐক্যবদ্ধভাবে প্রচেষ্টা চালানোর আহ্বান জানান। এ সময় উপস্থিত ছিলেন নর্থ ওয়েস্টার্ন ইউনিভার্সিটির ট্রেজারার প্রফেসর সুধীর কুমার পাল, সায়েন্স এ্যান্ড টেকনোলজি ফ্যাকাল্টির ডীন প্রফেসর ড. মোঃ নওশের আলী মোড়ল, রেজিস্ট্রার মোঃ শহীদুল ইসলাম, অতিরিক্ত পরিচালক (অর্থ ও হিসাব) জনাব রবীন্দ্রনাথ দত্ত, প্রক্টর শেখ মাহরুফুর রহমান, সহকারি রেজিস্ট্রার কাজী মোঃ আহসানুল্লাহসহ অন্যান্য কর্মকর্তা ও কর্মচারীবৃন্দ। সংবাদ বিজ্ঞপ্তি

বাংলাদেশে সংখ্যালঘু নির্যাতনের দৃষ্টান্ত নেই – পররাষ্ট্রমন্ত্রী

ঢাকা অফিস ॥ পররাষ্ট্রমন্ত্রী ড. এ কে আব্দুল মোমেন বলেছেন, বাংলাদেশে সংখ্যালঘুরা নির্যাতনের শিকার হচ্ছে না; বরং তারা শান্তি ও সম্প্রীতির সঙ্গে বসবাস করছে। ভারতের স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী অমিত শাহের বক্তব্যের পরিপ্রেক্ষিতে পররাষ্ট্রমন্ত্রী আব্দুল মোমেন মঙ্গলবার (১০ ডিসেম্বর) বিবিসি বাংলাকে এসব কথা বলেন। সোমবার ভারতের পার্লামেন্টে দাবি করা হয়, বাংলাদেশে সংখ্যালঘুদের ওপর নির্যাতন না থামাটাই নাগরিকত্ব সংশোধনী বিল আনার অন্যতম কারণ। এর প্রতিক্রিয়ায় আব্দুল মোমেন বলেন, ‘আমরা বলতেই পারি যে বাংলাদেশে সংখ্যালঘুদের অবস্থা এখন খুব ভালো। আগে যারা বিদেশে চলে গিয়েছিলেন, তারাও এখন ফিরে আসছেন।’ ভারতের স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী যদি সংখ্যালঘুদের ওপর নির্যাতনের অভিযোগ তুলে বক্তব্য দিয়ে থাকেন, তাহলে তা ঠিক নয় বলেও মনে করেন তিনি। নাগরিকত্ব বিল সম্পর্কে মোমেন বলেন, ভারত কী করল, সেটা তাদের অভ্যন্তরীণ বিষয়। তবে বাংলাদেশের সংখ্যালঘুরা খুব শান্তি ও সম্প্রীতিতে আছে। সোমবার লোকসভায় এ বিল পেশ করতে গিয়ে স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী অমিত শাহ বাংলাদেশসহ তিনটি প্রতিবেশী দেশের সংবিধানকে উদ্ধৃত করে বলেন, এই দেশগুলোর রাষ্ট্রধর্ম ইসলাম বলেই সেখানে অন্য ধর্মের মানুষ নিপীড়িত হচ্ছে। লোকসভায় বিলটি সোমবারই পাশ হয়। এ বিষয়ে পররাষ্ট্রমন্ত্রী বলেন, ‘রাষ্ট্রধর্ম ইসলাম হওয়ার কারণে সংখ্যালঘু নির্যাতনের অভিযোগ সঠিক নয়। এখানে সব ধর্মের মানুষই তাদের ধর্মীয় আচার-অনুষ্ঠান বিনা বাধায় উদযাপন করে থাকে। এদেশের নিয়ম হচ্ছে, ধর্ম যার যার, কিন্তু উৎসব সকলের। আমরা এই নীতিতেই বিশ্বাস করি। আমাদের দেশে নির্যাতনের কোনো দৃষ্টান্ত নেই। বরং ভারতে সংখ্যালঘুরা নির্যাতনের শিকার হয় বলে বিভিন্ন গণমাধ্যম থেকে জানা যায়।’

রোহিঙ্গাদের এনআইডি

সোয়া কোটি টাকার দুর্নীতির অভিযোগে ২ মামলা

ঢাকা অফিস ॥ জালিয়াতির মাধ্যমে রোহিঙ্গাদের ভোটার তালিকায় নাম অন্তর্ভুক্ত করে জ্ঞাত আয়বহির্ভূত সম্পদ অর্জন ও অর্থ পাচারের অভিযোগে চট্টগ্রামের ডবলমুরিং থানা নির্বাচন কার্যালয়ের অফিস সহায়ক জয়নাল আবেদীনসহ আটজনের বিরুদ্ধে আলাদা মামলা করেছে দুর্নীতি দমন কমিশন (দুদক)। গতকাল বুধবার চট্টগ্রামের ১ নম্বর ও ২ নম্বর সমন্বিত জেলা কার্যালয়ে মামলা দুটি দায়ের করা হয় হয় বলে ২ নম্বর সমন্বিত জেলা কার্যালয়ের উপ-সহকারী পরিচালক শরীফ উদ্দিন জানিয়েছেন। এর মধ্যে দুদকের ২ নম্বর চট্টগ্রাম সমন্বিত জেলা কার্যালয়ের ৬৯ লাখ সাত হাজার ৪৪২ টাকার জ্ঞাত আয়বহির্ভূত সম্পদ অর্জনের মামলায় শুধু জয়নালকে আসামি করা হয়েছে, যার বাদী দুদকের ১ নম্বর চট্টগ্রাম সমন্বিত জেলা কার্যালয়ের উপ-সহকারী পরিচালক জাফর সাদেক শিবলী। অপরদিকে মোট ৬৭ লাখ ৮৩ হাজার ২৯৬ টাকা পাচারের অভিযোগে উপ-সহকারী পরিচালক শরীফ উদ্দিনের করা মামলায় জয়নালসহ সবাইকে আসামি করা হয়েছে। অপর আসামিরা হলেন- জয়নালের স্ত্রী আনিছুন নাহার, জাফর, ঢাকায় এনআইডি প্রকল্পের ডাটা এন্ট্রি অপারেটর সত্য সুন্দর দে, জয়নালের সহযোগী সীমা দাশ, তার ভাই বিজয় দাশ, চট্টগ্রাম জেলা নির্বাচন অফিসের অস্থায়ী অফিস সহায়ক ঋষিকেশ দাশ, বান্দরবান সদর উপজেলার ডাটা এন্ট্রি অপারেটর নিরূপম কান্তি নাথ। আসামিদের মধ্যে ঋষিকেশ ও নিরুপমকে মঙ্গলবার গ্রেপ্তার করা হয়েছে বলে শরীফ উদ্দিন জানান। জয়নালের স্ত্রী ও জাফর ছাড়া অন্যরা এনআইডি জালিয়াতির মামলায় গ্রেপ্তার হয়ে কারাগারে আছেন।  অর্থ পাচারের মামলার নথি অনুযায়ী, পরস্পর যোগসাজসে ইসলামী ব্যাংক চশবাজার শাখায় ৩৪ লাখ তিন হাজার ১৫২ টাকা, আল আরাফা ইসলামী ব্যাংক আনোয়ারা শাখায় ২৮ লাখ ২০ হাজার ১৪৪ টাকা, প্রাইম ব্যাংক বাঁশখালী এক লাখ ১০ হাজার এবং এসএ পরিবহনের মাধ্যমে তিন লাখ ৫০ হাজার টাকাসহ মোট ৬৭ লাখ ৮৩ হাজার ২৯৬ টাকা হস্তান্তর, স্থানান্তর বাড়ি নির্মাণে ব্যয়ের ঘটনায় আট আসামির বিরুদ্ধে মানি লন্ডারিং প্রতিরোধ আইনের ২০১২ এর ৪(২) ও দন্ডবিধির ১০৯ এবং দুর্নীতি প্রতিরোধ আইনের ৫(২) ধারায় মামলা হয়েছে। অন্যদিকে জ্ঞাত আয়বহির্ভূত ৬৯ লাখ সাত হাজার ৪৪২ টাকার সম্পদ নিজের ভোগ দখলে রাখার ঘটনায় জয়নালের বিরুদ্ধে দুর্নীতি কমিশন আইন, ২০০৪ এর ২৭(১) ধারায় মামলা হয়েছে। গত আগস্টে এক রোহিঙ্গা নারী ভুয়া জাতীয় পরিচয়পত্র (এনআইডি) নিয়ে চট্টগ্রামে পাসপোর্ট সংগ্রহ করতে গিয়ে ধরা পড়ার পর জালিয়াত চক্রের খোঁজে নামে নির্বাচন কমিশন। আটকে দেয় রোহিঙ্গা সন্দেহে অর্ধশত এনআইডি বিতরণ। এনআইডি জালিয়াতিতে সম্পৃক্ততার অভিযোগে গত ১৬ সেপ্টেম্বর চট্টগ্রাম নির্বাচন কার্যালয়ের অফিস সহায়ক জয়নাল, দুই সহযোগী সীমা ও বিজয়কে আটক ও একটি ল্যাপটপ জব্দ করে পুলিশে দেন ইসি কর্মকর্তারা। এ ঘটনায় চট্টগ্রামের কোতোয়ালী থানায় করা মামলার তদন্ত করছে নগর পুলিশের কাউন্টার টেরোরিজম ইউনিট। ইতোমধ্যে কাউন্টার টেরোরিজম নির্বাচন অফিসের চারজন স্থায়ী ও প্রকল্পের অধীনে কর্মরত সাতজনসহ মোট ১৩ জনকে গ্রেপ্তার করা হয়েছে। এদিকে নির্বাচন কর্মকর্তাদের অর্থিক দুর্নীতির তদন্তে নেমেছে দুদক। চট্টগ্রামের বেশ কয়েকজন নির্বাচনী কর্মকর্তার সম্পদের তথ্য চেয়ে চিঠিও দিয়েছে।

গাম্বিয়ার করা গণহত্যার অভিযোগ বিভ্রান্তিকর – সু চি

ঢাকা অফিস ॥ রাখাইনে সেনা অভিযানে যা ঘটেছে, গণহত্যার সংজ্ঞার সঙ্গে সাযুজ্যপূর্ণ কি না- সেই প্রশ্ন তুলে মিয়ানমারের নেত্রী অং সান সু চি বলেছেন, জাতিসংঘের আদালতে গাম্বিয়ার করা মামলা ‘ভুল দিক’ নির্দেশ করছে। রোহিঙ্গা গণহত্যার অভিযোগে দ্য হেগের ইন্টারন্যাশনাল কোর্ট অব জাস্টিসে (আইসিজে) মিয়ানমারের পক্ষে বক্তব্য দিতে দাঁড়িয়ে বুধবার নোবেলবিজয়ী সু চির এই সাফাই আসে। রোহিঙ্গা শব্দটি উচ্চারণ না করেই তিনি বলেন, রাখাইনে সেনা অভিযানে অতিরিক্ত বলপ্রয়োগের অভিযোগ হয়ত উড়িয়ে দেওয়া যায় না, তবে তার পেছনে গণহত্যার উদ্দেশ্য ছিল- এমন ধরে নেওয়াটাও মিয়ানমারের জটিল বাস্তবতায় ‘ঠিক হবে না’। দুই বছর আগে রোহিঙ্গাদের গ্রামে গ্রামে সেনাবাহিনীর অভিযানে যে বর্বরতা চালানো হয়েছে, তার মধ্য দিয়ে ১৯৮৪ সালের আন্তর্জাতিক গণহত্যা কনভেনশন ভঙ্গ করার অভিযোগে মিয়ানমারকে জাতিসংঘের এই সর্বোচ্চ আদালতে এনেছে পশ্চিম আফ্রিকার ছোট্ট দেশ গাম্বিয়া। মঙ্গলবার দ্য হেগের পিস প্যালেসে গাম্বিয়ার পক্ষে বক্তব্য উপস্থাপন করে আইনমন্ত্রী আবুবকর তামবাদু মিয়ানমারে রোহিঙ্গাদের ওপর বর্বরতার চিত্র তুলে ধরেন এবং গণহত্যা বন্ধের দাবি জানান। এরপর বুধবার মিয়ানমারের পক্ষে বক্তব্য দিতে এসে দেশটির স্টেট কাউন্সিলর সু চি দাবি করেন, রাখাইনের পরিস্থিতি সম্পর্কে গাম্বিয়া যে চিত্র এ আদালতে উপস্থাপন করেছে তা ‘অসম্পূর্ণ ও বিভ্রান্তিকর’। ২০১৭ সালের ২৫ আগস্ট রাখাইনে নিরাপত্তা বাহিনীর বেশ কিছু স্থাপনায় ‘বিদ্রোহীদের’ হামলার পর রোহিঙ্গাদের গ্রামে গ্রামে শুরু হয় সেনাবাহিনীর অভিযান। সেই সঙ্গে শুরু হয় বাংলাদেশ সীমান্তের দিকে রোহিঙ্গাদের ঢল। এরপর গত দুই বছরে সাত লাখের বেশি রোহিঙ্গা প্রাণ বাঁচাতে বাংলাদেশে এসে আশ্রয় নেয়। তাদের কথায় উঠে আসে নির্বিচারে হত্যা, ধর্ষণ, জ্বালাও-পোড়াওয়ের ভয়াবহ বিবরণ, যাকে জাতিগত নির্মূল অভিযান বলে জাতিসংঘ।

রাজশাহীর টিপু রাজাকারের ফাঁসির রায়

ঢাকা অফিস ॥ বাংলাদেশের স্বাধীনতাযুদ্ধের সময় রাজশাহীতে অপহরণ, আটকে রেখে নির্যাতন ও হত্যার মত মানবতাবিরোধী অপরাধের দায়ে বোয়ালিয়ার সাবেক শিবির নেতা মো. আব্দুস সাত্তার ওরফে টিপু সুলতানকে মৃত্যুদন্ড দিয়েছে যুদ্ধাপরাধ আদালত। বিচারপতি শাহিনুর ইসলামের নেতৃত্বে তিন সদস্যের আন্তর্জাতিক অপরাধ ট্রাইব্যুনাল গতকাল বুধবার আসামির উপস্থিতিতে এ মামলার রায় ঘোষণা করে। মুক্তিযুদ্ধের প্রথম দিকে পাকিস্তানি সেনাবাহিনীর সঙ্গে মিলে স্থানীয় যে রাজাকাররা রাজশাহী বিশ্ববিদ্যালয়ে হত্যাকান্ড চালিয়েছিল, তাদের মধ্যে টিপু সুলতানই  কেবল বেঁচে আছেন। একাত্তরের সেই ভূমিকার জন্য এলাকার অনেকে তাকে চেনে টিপু রাজাকার নামে। ১৭৭ পৃষ্ঠার রায়ে আদালত বলেছে, আসামির বিরুদ্ধে প্রসিকিউশনের আনা দুটি অভিযোগই সন্দেহাতীতভাবে প্রমাণিত হয়েছে। প্রতিটি অভিযোগেই সর্বসম্মতিক্রমে আসামিকে দেওয়া হয়েছে মৃত্যুদন্ড। রায়ে সন্তোষ প্রকাশ করে ট্রাইব্যুনালের প্রসিকিউটর মোখলেছুর রহমান বাদল তাৎক্ষণিক প্রতিক্রিয়ায় বলেন, “একাত্তরে পাকিস্তানি হানাদার বাহিনীর সাথে একত্রিত হয়ে ইসলামী ছাত্রসংঘ যে আলবদর ও রাজাকার বাহিনী গড়ে তুলেছিল, সে বাহিনী ছিল হিটলারের গেস্টাপো বাহিনীর মত। আজকের রায়ের মধ্য দিয়ে সে কথাগুলোই উঠে এসেছে।” তিনি বলেন, “আসামির বিরুদ্ধে দুটি অভিযোগ ছিল। তা প্রমাণে মামলাটির তদন্তকারী কর্মকর্তাসহ ১৪ জন সাক্ষ্য দিয়েছেন। সাথে দালিলিক প্রমাণাদি দিয়ে দুটি অভিযোগই আমরা প্রমাণ করতে সক্ষম হয়েছি। ফলে তাদের অপরাধ বিবেচেনা করে আদালত মৃত্যুদন্ডের রায় দিয়েছে; এ রায়ে আমরা সন্তুষ্ট।” অন্যদিকে আসামির পক্ষে রাষ্ট্র নিয়োজিত আইনজীবী গাজী এমএইচ তামিম বলেন, “এই রায়ে আমার মক্কেল সংক্ষুব্ধ। তিনি এ রায়ের বিরুদ্ধে আপিল করবেন। আশা করি আপিলে তিনি খালাস পাবেন।” আন্তর্জাতিক অপরাধ আইন অনুযায়ী, যুদ্ধাপরাধ মামলায় দন্ডিত আসামি রায়ের এক মাসের মধ্যে সর্বোচ্চ আদালতে আপিল করার সুযোগ পান। আন্তর্জাতিক অপরাধ ট্রাইব্যুনালে এ পর্যন্ত রায় আসা ৪১টি মামলার ১০৩ জন আসামির মধ্যে ছয়জন বিচারাধীন অবস্থায় মারা গেছেন। মোট ৯৫ জনের সাজা হয়েছে, যাদের মধ্যে ৬৮ যুদ্ধাপরাধীর সর্বোচ্চ সাজার রায় এসেছে। রায় ঘোষণার আগে এজলাসে বসেই ট্রাইব্যুনালের চেয়ারম্যান শাহিনুর ইসলাম এদিন বঙ্গবন্ধু, শহীদ বুদ্ধিজীবীসহ মুক্তিযুদ্ধের ৩০ লাখ শহীদের প্রতি শ্রদ্ধা জানান। তিনি বলেন, “বিজয়ের মাস চলছে। আর পাঁচ দিন পরেই জাতি মহান বিজয় দিবস, তিন দিন পর শহীদ বুদ্ধিজীবী দিবস পালন করতে যাচ্ছে। রায় প্রদানের প্রাক্কালে বিশেষভাবে শ্রদ্ধা জানাই জাতির জনক বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের প্রতি। মহান মুক্তিযুদ্ধের ৩০ লাখ শহীদ ও সম্ভ্রম হারানো দুই লাখ মা-বোন ও শহীদ বুদ্ধিজীবীদের প্রতি। “পাশাপাশি তাদের আত্মার শান্তি কামনা করছি। আশা করছি তাদের মহান আত্মত্যাগের মহিমাকে সামনে রেখে দেশ-জাতি এগিয়ে যাবে।” ট্রাইব্যুনালের তদন্ত সংস্থা ২০১৭ সালের ২ মে টিপু সুলতানের বিরুদ্ধে যুদ্ধাপরাধের অভিযোগের তদন্ত শুরু করে। তদন্ত শেষে গতবছর ২৭ মার্চ ছাত্রশিবিরের এই সাবেক নেতার বিরুদ্ধে প্রতিবেদন দেয় প্রসিকিউশনের তদন্ত দল। গত বছর ২৯ মে প্রসিকিউশনের দেওয়া আনুষ্ঠানিক অভিযোগ আমলে নিয়ে ৮ আগস্ট অভিযোগ গঠনের মধ্য দিয়ে টিপু সুলতানের বিচার শুরুর আদেশ দেয় ট্রাইব্যুনাল। তদন্ত কর্মকর্তাসহ মোট ১৪ জন এ মামলার শুনানিতে প্রসিকিউশনের পক্ষে সাক্ষ্য দেন। এছাড়া রাজশাহী জেলার রাজাকার তালিকা ও স্বরাষ্ট্র মন্ত্রণালয়ের জননিরাপত্তা বিভাগের রাজনৈতিক অধিশাখা এবং ১৯৭১ সালে বিভিন্ন সংবাদপত্রে প্রকাশিত প্রতিবেদনও জব্দ তালিকার সাক্ষী হিসেবে তুলে ধরা হয়।

 

পদ্মা সেতুর ২৭০০ মিটার দৃশ্যমান

ঢাকা অফিস ॥ পদ্মা সেতুর মাওয়া প্রান্তে গতকাল বুধবার ১৭ ও ১৮ নম্বর খুঁটির ওপর ১৮তম স্প্যান বসানো হয়েছে। এই স্প্যানটি বসানোর মধ্যদিয়ে সেতুর ২ হাজার ৭০০ মিটার দৃশ্যমান হয়েছে। এর আগে গত ২৬ নভেম্বর সেতুর ১৭তম স্প্যানটি ২২ ও ২৩ নং খুঁটির ওপর সফলভাবে বসানো হয়। ১৬তম স্প্যান বাসানোর মাত্র ৭ দিনের ব্যবধানে ১৭তম এবং ১৭তম স্প্যান বাসানোর মাত্র ১৪ দিনের ব্যবধানে বসানো হলো ১৮তম এই স্প্যানটি। এর আগে ১৬তম স্প্যানটি গত ১৯ নভেম্বর ১৬ ও ১৭ নম্বর খুঁটিতে বসেছিল। দায়িত্বশীল প্রকৌশলীরা জানান, এখন এভাবেই ঘন ঘন স্প্যান বসবে। পদ্মা সেতুর প্রকৌশলী হুমায়ুন কবির জানান, বুধবার সকাল সাড়ে ৯ টার দিকে মাওয়ার কন্সট্রাকশন ইয়ার্ড-১ থেকে ৩৬০০ টন ধারণ ক্ষমতার ‘তিয়ান-ই’ ভাসমান ক্রেনে করে নির্দিষ্ট স্থানে স্প্যানটি আনা হয়। পরবর্তীতে ১৭ ও ১৮ নম্বরে পিয়ারের উপর স্থায়ীভাবে স্প্যানটি স্থাপন করা হয়। এরপর ১৬ ও ১৭ নম্বর পিলারের স্প্যানের একটি অংশের সাথে ঝালাই করা হবে। ১৭তম স্প্যান বসানোর ১৪ দিনের মাথায় বসানো হলো ১৮তম স্প্যানটি। তিনি জানান, ধূসর রঙের ১৫০ মিটার দৈর্ঘ্যরে ৩ হাজার ১৪০ টন ওজনের স্প্যানটি বসানোর মধ্য দিয়ে পদ্মা সেতুর ২৭০০ মিটার দৃশ্যমান হলো। পদ্মা সেতুর প্রকৌশলীরা আরও জানান, পদ্মা সেতুর চ্যালেঞ্জিং সব কাজ শেষ হয়েছে। এখন দ্রুতই এগুবে সেতুর কাজ। প্রতিমাসের কম-বেশি স্প্যান বসবে। চীন থেকে দেশে আসা ৩৩ টি স্প্যানের মধ্যে ১৭ টি ইতোমধ্যে বসানো হয়েছে। এখনও কনস্ট্রাকশন ইয়ার্ডে প্রস্তুত আছে পাঁচটি ও বাকি আছে ১১ টি স্প্যান। নভেম্বরে এক সপ্তাহের ব্যবধানে দুইটি স্প্যান বসানো হয়েছিল। ডিসেম্বর মাসেই সেতুর ৪-সি ও ৩-এফ স্প্যানসহ মোট তিনটি স্প্যান বসানোর পরিকল্পনা রয়েছে কর্তৃপক্ষের। সেতুর রোডওয়ে স্ল্যাব ও রেলওয়ে স্ল্যাবসহ অন্যান্য কাজও সিডিউল অনুযায়ী চলছে। অর্থাৎ একদিকে যেমন স্প্যান বসছে পিলারের উপর। একই সঙ্গে ওই সকল পিলারের উপর রেল লাইন বসানো ও উপরিভাগে রোড বা সড়ক পথ নির্মাণের কাজও চলছে সমান তালে। তাই বলা যায় পদ্মা সেতুর কাজ এখন দ্রুত গতিতে এগিয়ে চলছে। আগামী ২০২১ সালের জুন মাসেই পদ্মা সেতুর উপর দিয়ে যানবাহন চলাচল করতে পারবে বলে কর্তৃপক্ষ ইতোপূর্বে ঘোষণা দিয়েছে। ৬ দশমিক ১৫ কিলোমিটার দৈর্ঘ্যের দ্বিতল সেতুটি কংক্রিট ও স্ট্রিল দিয়ে নির্মাণ করা হচ্ছে। চীনের ঠিকাদারি প্রতিষ্ঠান চায়না রেলওয়ে মেজর ব্রিজ ইঞ্জিনিয়ারিং কোম্পানি লিমিটেড মূল সেতু নির্মাণের কাজ করছে। দ্বিতল এ সেতুর উপরিভাগ দিয়ে চলবে গাড়ি আর নীচ দিয়ে চলাচল করবে ট্রেন।