বাংলাদেশ মাস্টার্স এ্যাথলেটিক দল সুনামের সাথে ভারতে বিভিন্ন  খেলায় অংশগ্রহণ

বাংলাদেশ মাস্টার্স এ্যাথলেটিকস দল  ৫০জন খেলোয়াড়, ৬জন কমর্কতা, ২জন কোচ নিয়ে ভারতের পশ্চিমবঙ্গ  মেদিনীপুর  অরবিন্দু  ষ্টেডিয়াম মাঠে বাংলাদেশ দল গত ১৪ তারিখে রাত ৮টায় ঢাকা ত্যাগ করে ১৬-১৭ নভেম্বর ২০১৯ মাস্টার্স এ্যাথলেটিকস প্রতিযোগিতা কার্যকরি সভাপতি  ও এ্যাথলেটিকস  ফেডারেশনের সহ-সভাপতি তোফাজ্জেল হোসেন সহসভাপতি শাহ আলম টিম ম্যানেজার সহ সভাপতি নজির আহমেদ, এ্যাথলেটিকস  ফেডারেশনের সাধারন সম্পাদক এ্যাডঃ আব্দুর রকিব মন্টু  মাস্টার্স এ্যাথলেটিকস যুগ্ন সাধারন  সম্পাদক আলহাজ্ব মো আমজাদ আলী খান, এসএম সারাফত হোসেন কোষাধ্যক্ষ মহিউদ্দিন আহমেদ  মোস্তাক  এ্যাথলেটিকস ফেডারেশনের যুগ্ন সম্পাদক ফরিদ খান মিজানুর রহমানসহ বাংলাদেশ সেনা বাহিনী নৌবাহিনী  বিজিবি বাংলাদেশ ডাক বিভাগ পুলিশ আনসার বাহিনী কামস্টম  বিজিএমসি খেলোয়াড়রা বাংলাদেশ দল ২৩টি স্বর্ণ ১৮ রৌপ ১৩টি  ব্রোঞ্জ প্রথম দিনে ফলাফল বাংলাদেশ ডাক বিভাগ আমজাদ আলী খান চাকতি নিক্ষেপ গোলক নিক্ষেপ অংশগ্রহন করেন। সংবাদ বিজ্ঞপ্তি

শপথ নিলেন ভারতের নতুন প্রধান বিচারপতি বোবদে

ঢাকা অফিস ॥ ভারতের ৪৭তম প্রধান বিচারপতি হিসেবে শপথ নিলেন বিচারপতি শারদ অরবিন্দ বোবদে। সোমবার সকালে রাষ্ট্রপতি ভবনে শপথ নেন তিনি। ২০২১ সালের এপ্রিল মাস পর্যন্ত এই পদে আসীন থাকবেন বোবদে। খবর এনডিটিভির। এদিকে সরকারিভাবে এদিনই অবসর নেন দেশের প্রধান বিচারপতি রঞ্জন গগৈ। বাবরি মসজিদ মামলার বিতর্কিত রায়ের পরই তিনি কার্যত অবসরে চলে যান। অযোধ্যায় রামমন্দির নির্মাণ থেকে গোপনীয়তার অধিকারসহ একাধিক গুরুত্বপূর্ণ মামলার রায় প্রদান প্রক্রিয়ার অংশ ছিলেন ৬৩ বছর বয়সী বিচারপতি বোবদে। ২০১৫ সালে আধার কার্ডসংক্রান্ত মামলায় তিন সদস্যের বেঞ্চে ছিলেন তিনি। যৌন হেনস্তার মামলায় প্রধান বিচারপতি রঞ্জন গগৈকে নির্দোষ সার্টিফিকেট দেয়া তিন সদস্যের ইন-হাউস কমিটির প্রধানও ছিলেন তিনি। এক কথায় বলা যায়, ক্ষমতাসীন দল বিজেপির সবচেয়ে পছন্দের লোক নতুন এই প্রধান বিচারপতি।

র‌্যাগিংয়ে মেডিকেল কলেজ ছাত্রীর আত্মহত্যা!

ঢাকা অফিস ॥ ভারতের পশ্চিমবঙ্গে ন্যাশনাল মেডিকেল কলেজের এক ছাত্রীর ঝুলন্ত লাশ উদ্ধার করেছে পুলিশ। শনিবার হাসপাতালের পাঁচতলার বারান্দা থেকে ওই ছাত্রীর লাশ উদ্ধার করা হয়। নিহতের নাম সমাপ্তি রুইদাস। তিনি ন্যাশনাল মেডিকেল কলেজের নার্সিংয়ের প্রথম বর্ষের ছাত্রী ছিলেন। ভারতীয় গণমাধ্যম আনন্দবাজার জানিয়েছে, ইংরেজি ভীতির কারণে সমাপ্তি আত্মহত্যা করে থাকতে পারেন বলে ধারণা করছেন স্বাস্থ্য ভবনের কিছু কর্মকর্তা। তবে এমনটা মানতে নারাজ সমাপ্তির বাবা। তিনি নতুন করে তদন্তের দাবি জানিয়েছেন। সমাপ্তির মৃত্যু নিয়ে আত্মীয়বন্ধুদের অনেকে বলেছেন, ইংরেজি ভীতির কারণে আত্মহত্যা করেনি। মেডিকেলের হোস্টেলে র‌্যাগিংয়ের কারণে সমাপ্তি আত্মহত্যা করেছেন। সমাপ্তি বাঁকুড়ার কোতুলপুরের মেয়ে। সেখানকার বিধায়ক, পঞ্চায়েত ও গ্রামোন্নয়ন প্রতিমন্ত্রী শ্যামল সাঁতরাও বলেন, ‘পরিবার ও বন্ধুদের সঙ্গে কথা বলে আমার মনে হচ্ছে, হোস্টেলে ওর ওপরে র‌্যাগিং হতো। প্রকৃত তদন্ত হওয়া দরকার।’ এদিকে সমাপ্তির মৃত্যুর প্রকৃত কারণ জানতে চার সদস্যের তদন্ত কমিটি করা হয়েছে বলে জানিয়েছেন হাসপাতালের সুপার সন্দীপ ঘোষ। ওই ছাত্রীর বাবা সুকুমার রুইদাস বলছেন, ‘আলাদা ভাবে কোনো অভিযোগ করব না। তবে আমি সত্যিটা জানতে চাই।’ শনিবার রাতে সমাপ্তির লাশ নেয়া হয় গ্রামের বাড়িতে। সুকুমার জানান, সৎকারের সময় তারা দেখেন, মেয়ের বাঁ হাতে লেখা রয়েছে- ‘আমার বালিশের তলার খাতার ফোল্ড করা পাতায় লেখা আছে’। কিন্তু সেই হাতের লেখা সমাপ্তির নয় বলেই জানান বাবা। সমাপ্তির কাকা উজ্জ্বল রুইদাসের অভিযোগ, ‘ওর চোখের কাছে মারের দাগ দেখেছি।’ তাজপুর উচ্চ বিদ্যালয়ে সমাপ্তির দুই সহপাঠী জানান, হোস্টেলে র‌্যাগিং হতো বলে ওই তরুণী তাদের কাছে অভিযোগ করেছিলেন। তারা বলেন, ‘রাতে আলো জ্বালিয়ে পড়তে পারত না। মাঝরাতে সিনিয়রেরা পড়া ধরতে আসত। না-পারলে পাঁচতলা থেকে একতলায় পাঁচ-ছবার ওঠানামা করাত। পোশাক খুলে মারধরও করা হতো।’ স্কুলের এক সহপাঠী বলেন, ‘নতুন পরিবেশে মানিয়ে নিতে হয়তো অসুবিধা হতে পারে। কিন্তু ভর্তির মাত্র এক মাসের মধ্যে কতটা পড়ার চাপ পড়া সম্ভব? আমরা আত্মহত্যার কথা মানতে পারছি না।’

ভেড়ামারায় শীতের আগমনে লেপ-তোষক তৈরির ধুম

আল-মাহাদী ॥ শীত এলেই লেপ বানানোর ধুম পড়ে যায় দোকানে  দোকানে। কার্তিক মাসের মধ্যভাগ থেকে গ্রামীণ জনপদে শীতের আগমনী বার্তার কড়া নাড়া শুরু করে। শীত জেকে বসার আগে তাই লেপ-তোষক তৈরির ধুম লেগেছে কুষ্টিয়ার ভেড়ামারা উপজেলার সাধারণ মানুষের ঘরে ঘরে। ফলে লেপ-তোষকের  দোকানে বাড়ছে বেচা-কেনা। এসব দোকানের কর্মচারীদের এখন অলস সময় কাটানোর একদম ফুরসত নেই। ভেড়ামারা পৌর এলাকাসহ ইউনিয়নের বিভিন্ন হাট-বাজার ও পাড়া-মহল্লাতে লেপ- তোষক তৈরির কারিগররা এখন হাঁক-ডাক করে ঘুরে বেড়াচ্ছেন। শুধু লেপ-তোষক তৈরিই নয়, শীতের আগমনী বার্তার সঙ্গে মানুষের পোশাক-পরিচ্ছদ ও ব্যবহার্য সামগ্রীতেও পরিবর্তন আসতে শুরু করেছে। পাতলা পোশাকের পরিবর্তে অনেকেই মোটা জামার দিকে ঝুঁকছেন। তাই এখন কদর বাড়তে শুরু করেছে গরম  পোশাকেরও। এ ছাড়া শীতের সময় কাঁথা, কম্বল, চাঁদর বা শাল, শীতের টুপি, হাতমোজা, মাফলার, জাজিম ও কার্পেটের ব্যবহার ও বিক্রি বেড়ে যায়। ছয় ঋতুর এই দেশে শীতের আগমনী বার্তা শীতকালে হওয়ার কথা থাকলেও জলবায়ু পরিবর্তনের প্রভাবে তা এখন ঋতুর সঙ্গে তাল মিলিয়ে চলছে না। গ্রাম-বাংলায় একটি প্রবাদ আছে, আশ্বিন মাস এলেই শীতের কারণে মানুষের গা শিন-শিন করে। কিন্তু এখন কার্তিক মাসের শেষ ভাগে সকাল হলেই ঘন কুয়াশা আর শীতের আমেজ দেখা যাচ্ছে। সূর্য উঠার ঘণ্টা দুই পরেই আবার বদলে যাচ্ছে প্রকৃতির এমন রূপ। তখন রোদের তাপে শীতের কুয়াশা দূর হয়ে গরমে ঘাম ঝরছে এলাকার মানুষের। সন্ধ্যা নামার পরপরই প্রায় সারারাত মাঝারি শীতের কারণে বাসা-বাড়িতে শীত নিবারণের জন্য পাতলা কাঁথা ব্যবহার শুরু হয়েছে। তবে বেশিরভাগ মানুষই শীত নিবারণে সাধারণত নির্ভর করেন লেপ-তোষকের ওপর। এ কারণে লেপ-তোষকের কারিগরদেরও শীত আসার আগে থেকেই শুরু হয় ব্যস্ততা। প্রতিবছরের মতো এবারও এর ব্যতিক্রম হচ্ছে না। শীতকে সামনে রেখে এরই মধ্যে ভেড়ামারার বিভিন্ন মার্কেট, এলাকা ও গলির  মোড়ে গড়ে ওঠা লেপ-তোষকের দোকানগুলোতে বাড়ছে ক্রেতার আনা গোনা। লেপ-তোষকের দোকানের প্রায় সবকটিতেই ছিল অর্ডার দিতে আসা ক্রেতাদের ভিড়। দোকানিরাও অর্ডার গ্রহণ এবং বিভিন্ন রঙ ও মানের কাপড় ও তুলা দেখাতে ব্যস্ত সময় কাটাচ্ছেন। একই দৃশ্য চোখে পড়ে বিভিন্ন হাট-বাজারে।

বিএসএফের গুলিতে ২ বাংলাদেশি নিহত

ঢাকা অফিস ॥ শেরপুরে শ্রীবরদী উপজেলায় সীমান্তে বিএসএফের গুলিতে দুই বাংলাদেশি যুবক নিহত হয়েছেন বলে পুলিশ ও বিজিবি জানিয়েছে। গতকাল সোমবার ভোরে এবং দুপুরে লাশ দুটি উদ্ধার করা হয় বলে শ্রীরবদী থানার ওসি মোহাম্মদ রুহুল আমিন তালুকদার জানান। নিহতরা হলেন- উপজেলার মেঘাদল বকুলতলা গ্রামের সুরুজ আলী ওরফে বঙ্গসুরুজর ছেলে উকিল মিয়া (২৫) ও একই মাটিকাটা এলাকার আজিজুল হক মেম্বারের ছেলে (২৫) খোকন মিয়া।  স্থানীয়রা জানান, গরুর ঘাস সংগ্রহের জন্য একদল যুবক ভারতীয় সীমান্তের কুমারগাতি এলাকায় প্রবেশ করলে বিএসএফ গুলি চালায়। এতে উকিল আহত হন। পরে সীমান্তের সিংগাবরুনা ইউনিয়নের পানবাড়ি রাবার বাগান এলাকায় আসার পর তার মৃত্যু হয়। খবর পেয়ে ভোর ৫টার দিকে বিএসএফ উকিলের লাশ উদ্ধার করে।  এরপর বেলা ৩টার দিকে পানবাড়ি রাবার বাগানের অদূরে মারেংপাড়া এলাকা থেকে খোকনের লাশ উদ্ধার করা হয় বলে শ্রীরবদী থানার ওসি মোহাম্মদ রুহুল আমিন তালুকদার জানান। কর্ণঝোড়া ক্যাম্পের সুবেদার খন্দকার আব্দুল হাই বলেন, লাশ উদ্ধার করে পুলিশের কাছে হস্তান্তর করা হয়েছে। এ ঘটনায় বিজিবি-বিএসএফ পতাকা বৈঠক অনুষ্ঠিত হবে। লাশ ময়নাতদন্তের জন্য শেরপুর সদর হাসপাতালের মর্গে পাঠানো হয়েছে বলে জানান ওসি।

ঝিনাইদহে অস্ত্র ও গুলিসহ ডাকাত আটক

ঝিনাইদহ  প্রতিনিধি  ॥ ঝিনাইদহের মহেশপুর উপজেলার সাড়াতলা মাঠ থেকে অস্ত্র ও গুলিসহ বিল্লাল হোসেন (৩৩) নামের এক ডাকাত সদস্যকে আটক করেছে পুলিশ। সোমবার ভোররাতে তাকে আটক করা হয়। আটককৃত বিল্লাল হোসেন ওই এলাকার রবিউল ইসলামের ছেলে। মহেশপুর থানার ওসি রাশেদুল আলম জানান, গোপন সংবাদের ভিত্তিতে তারা জানতে পারে সাড়াতলা মাঠ এলাকায় ডাকাতদল ডাকাতির প্রস্তুতি নিচ্ছে। এমন সংবাদের ভিত্তিতে সেখানে অভিযান চালায় পুলিশ। পুলিশের উপস্থিতি টের পেয়ে অন্যরা পালিয়ে গেলেও ঘটনাস্থল থেকে বিল্লাল হোসেকে আটক করা হয়। পরে তার কাছ থেকে উদ্ধার করা হয় একটি দেশীয় তৈরীর ওয়ান শুট্যার গান ও ১ রাউন্ড গুলি। বিল্লাল হোসেন দীর্ঘদিন ধরে এলাকায় ডাকাতি করে আসছিল বলেও জানান ওসি।

খোকসায় গ্রাহকের ১৫ লাখ টাকা হাতিয়ে নিয়ে লাপাত্তা রুরাল রিকনস্ট্রাকশন ফাউন্ডেশনের শাখা ব্যবস্থাপক

খোকসা প্রতিনিধি ॥ কুষ্টিয়ার খোকসায় গ্রাহকের ১৫ লাখ টাকা হাতিয়ে নিয়ে একটি অর্থলগ্নি প্রতিষ্ঠানের শাখা ব্যবস্থাপক আত্মগোপন করেছে। এক নারী গ্রাহককে অফিসে আটকে নির্যাতন চালোন অভিযোগ উঠেছে পলাতক শাখা ব্যবস্থাপকের বিরুদ্ধে। ভুক্তভোগী গ্রাহকদের অভিযোগ, অর্থলগ্নি প্রতিষ্ঠান রুরাল রিকনস্ট্রাকশন ফাউন্ডেশনের খোকসা উপজেলা শাখার ব্যবস্থাপক ইলিয়াস হোসেন গত কয়েক মাস ধরে গ্রাহকদের ঋণ দেবার প্রতিশ্র“তি দিয়ে অগ্রিম জামানত ও ডিপিএস খোলার কথা বলে প্রায় ১৫ লাখ টাকা হাতিয়ে নেয়। গত সপ্তাহ থেকে গ্রাহকরা ঋণের জন্য চাপ দিতে থাকে। রবিবার দিনগত রাতে শাখা ব্যবস্থাপক ইলিয়াস হোসেন গ্রাহকদের টাকা নিয়ে আত্মগোপন করে। এ খবর ছড়িয়ে পড়লে গতকাল সোমবার সকাল থেকে উপজেলা সদরের মাষ্টারপাড়ায় প্রতিষ্ঠানটির অফিসের সামনে গ্রাহকরা বিক্ষোভ প্রদর্শন করে। এ সময় ভুক্তভোগী গ্রাহকদের মধ্যে নাছিমা নামের এক গ্রাহক অভিযোগ করেন, তার মেয়ের বিয়ের জন্য এই প্রতিষ্ঠান থেকে আড়াই লাখ টাকা ঋণ দেওয়ার প্রতিশ্র“তি দিয়ে শাখা ব্যবস্থাপক ও শাহীন নামের এক মাঠ কর্মী মহিলার কাছ থেকে ৭৫ হাজার টাকা জামানত, সঞ্চয় ও ডিপিএস বাবদ জমা নেয়। ঋণ অথবা টাকা ফেরতের জন্য নাছিমা কয়েক দফায় খোকসার এই অফিসে আসে। এক পর্যায়ে এক রাতে এই নারী গ্রাহকে অফিসের একটি কক্ষে আটকে রাখে। এক পর্যায়ে সে রাতেই স্থানীয়রা নারীকে উদ্ধার করে বাড়ি পাঠিয়ে দেয়। এ নিয়ে ওই নারী গ্রাহক এই প্রতিষ্ঠানের প্রধান কার্যালয়েও গিয়েছিল কিন্তু তাতে লাভ হয়নি। সন্ধ্যায় এ রিপোট লেখা পর্যন্ত সঞ্চয় ও জামানতের টাকার ফেরত পাবার জন্য কয়েকশ গ্রাহককে অপেক্ষা করতে দেখা যায়। এদের মধ্যে অলংকার ব্যবসায়ী সঞ্জীব সরকার জানান শাখা ব্যবস্থাপক ইলিয়াস হোসেন অফিসের কথা বলে তার কাছ থেকে প্রায় ৬০ হাজার টাকার গহনা বাঁকী নিয়েছে। গ্রাহক বাচ্চু শেখ, আসাদ মোল্লা, পিন্টু শেখ, সবুজ হোসেন, নাভিন হাসানসহ অন্যরা একই অভিযোগ করেন এই শাখা ব্যবস্থাপকের বিরুদ্ধে। গ্রাহকের সাথে প্রতারণার কথা স্বীকার করলেন বাড়ির মালিক রাজু। তিনি দাবি করেন শাখা ব্যবস্থাপক তার কাছ থেকেও অনেক টাকা ধার নিয়েছে।  রুরাল রিকনস্ট্রাকশন ফাউন্ডেশনের কুষ্টিয়ার আঞ্চলিক ম্যানেজার উজ্জল কুমার মন্ডল স্বীকার করেন শাখা ব্যবস্থাপকের অনিয়মের কথা। তবে তিনি পালিয়ে গেলেও অফিসের নিয়ন্ত্রনে রয়েছেন বলে স্বীকার করেন। নারী গ্রাহকের অভিযোগ অস্বীকার করেন তিনি। গ্রাহকদের অভিযোগের সত্যতা পাওয়া গেলে আত্মগোপনে থাকা শাখা ব্যবস্থাপকের বিরুদ্ধে ব্যবস্থা নেওয়া যেতে পারে বলেও তিনি মন্তব্য করেন।

ভেঙে গেল এলডিপি

অলি-রেদোয়ানের বিপরীতে আব্বাসী-সেলিমের পাল্টা কমিটি

ঢাকা অফিস ॥ ভেঙে গেল বিএনপি নেতৃত্বাধীন ২০ দলীয় জোটের অন্যতম শরিক লিবারেল ডেমোক্রেটিক পার্টি (এলডিপি)। গত ৯ নভেম্বর কর্নেল অবসরপ্রাপ্ত অলি আহমেদকে সভাপতি এবং ডক্টর রেদোয়ান আহমেদকে মহাসচিব করে এলডিপির নতুন কেন্দ্রীয় নির্বাহী কমিটি ঘোষণা হয়। এই কমিটি থেকে বাদ পড়েন দলটির সাবেক সিনিয়র যুগ্ম-মহাসচিব শাহাদাত হোসেন সেলিম। এরপর থেকেই মূলত দলটির মধ্যে ভাঙ্গনের সুর বেজে ওঠে। গতকাল তা চূড়ান্ত রূপ পেল। সোমবার সকালে জাতীয় প্রেসক্লাবে এলডিপির পদবঞ্চিত নেতারা সংবাদ সম্মেলন করে অলি আহমেদ এবং রেদোয়ান আহমেদদের বিপরীতে ৭ সদস্যের একটি সমন্বয় কমিটি ঘোষণা হয়। এলডিপির সাবেক সিনিয়র যুগ্ম মহাসচিব শাহাদাত হোসেন সেলিম এই কমিটি ঘোষণা করেন। সমন্বয় কমিটির সভাপতি হিসেবে আবদুল করিম আব্বাসীর নাম ঘোষণা করা হয় এবং সদস্য সচিব সেলিম। সংবাদ সম্মেলনে সেলিম বলেন, গত বছরের ৮ ফেব্র“য়ারি থেকে বেগম খালেদা জিয়া সরকারের রোষানলে পড়ে কারাবন্দি রয়েছেন। তাকে মুক্ত করার জন্য যখন দল-মত-নির্বিশেষে জাতীয় ঐক্য গড়ার দরকার তখন নিজেদের মধ্যে বিভেদ তৈরি করার জন্য একটি পক্ষ তৎপর হয়ে উঠেছে। এর মধ্যে কর্নেল অলি সাহেব তার এক বক্তব্যে পুরো বিএনপি’র নেতৃত্বকেই চ্যালেঞ্জ ছুড়ে দেন। তার এই বক্তব্যে বেগম খালেদা জিয়া কারাবন্দি থাকায় এবং তারেক রহমান দেশের বাইরে থাকায় বিএনপির নেতৃত্ব নেওয়ার জন্য আগ্রহ প্রকাশ করেন। ‘একজন সিনিয়র রাজনীতিবিদ হিসেবে দেশের এই ক্রান্তিলগ্নে যেখানে সবাইকে ঐক্যবদ্ধ রাখার প্রয়াস চালাবেন সেখানে জোটের মধ্যে বিভেদ তৈরীর জন্য জাতীয় মুক্তি মঞ্চ তৈরি করেছেন। শুরুতে মুক্তি মঞ্চকে বেগম খালেদা জিয়ার মুক্তির জন্য আলাদা প্ল্যাটফর্ম বলা হলেও ধীরে ধীরে তার জিয়া পরিবার আর বিএনপি’র বিষোদগার করার প্ল্যাটফর্মে পরিণত হয়। বিএনপি’র শীর্ষ নেতৃত্বকে বিতর্কিত আর দুর্বল করার চেষ্টা ষড়যন্ত্র শুরু করে যা আমাদের মত জাতীয়তাবাদী আদর্শের পক্ষে মেনে নেওয়া কঠিন হয়ে পড়ে। এই অবস্থায় কোন দলের সঙ্গে নিজেকে খাপ খাওয়ানো আমাদের জন্য দুরূহ হয়ে পড়েছে।’ সেলিম বলেন, বিএনপি ভেঙে এলডিপি গঠন করে যে পাপ করেছি তার প্রায়শ্চিত্ত করতে চাই। বাংলাদেশ জাতীয়তাবাদী দল (বিএনপি) যদি আমাদের আমন্ত্রণ জানায় তাহলে আমরা এলডিপি বিলুপ্ত করে বিএনপিতে যুক্ত হবো।

সচিবালয়ে সংবাদ সম্মেলনে ওবায়দুল কাদের

কোনো চাপেই নতুন সড়ক পরিবহন আইন বাস্তবায়নের পথ থেকে সরকার সরে আসবে না

ঢাকা অফিস ॥ কোনো চাপেই নতুন সড়ক পরিবহন আইন বাস্তবায়নের পথ থেকে সরকার সরে আসবে না বলে স্পষ্ট জানিয়েছেন সড়ক পরিবহন ও সেতুমন্ত্রী ওবায়দুল কাদের। একই সঙ্গে এই আইন প্রয়োগে যেন অযথা বাড়াবাড়ি না হয় সে ব্যাপারে আইনশৃঙ্খলা বাহিনীকে নির্দেশনা দেওয়া হয়েছে বলেও জানিয়েছেন তিনি। গতকাল সোমবার সচিবালয়ে এক সংবাদ সম্মেলনে ওবায়দুল কাদের এ কথা বলেন। আগের চেয়ে কঠোর সাজা রেখে করা নতুন সড়ক পরিবহন আইনটি কাগজে-কলমে গত ১ নভেম্বর থেকে কার্যকর হলেও আইন সম্পর্কে সবাইকে সচেতন করতে দুই সপ্তাহ সময় নেওয়া হয়। রোববার সেই সময় শেষ হওয়ার পর ওবায়দুল কাদের আইনটি কার্যকর হওয়ার কথা জানান। ওবায়দুল কাদেরের সংবাদ সম্মেলন চলার মধ্যেই অন্তত দশ জেলায় বাস চলাচল বন্ধ করে দেওয়ার খবর এসেছে। আরও অনেক জায়গায় পরিবহন ধর্মঘটের হুমকি দেওয়া হচ্ছে। ট্রাক চালকরা ধর্মঘটের ঘোষণা দেবে বলে শোনা যাচ্ছে। এমন পরিস্থিতিতে আইনটি বাস্তবায়নের ক্ষেত্রে কোনো ধরনের চাপ রয়েছে কিনা জানতে চাইলে ওবায়দুল কাদের বলেন, “যত চাপই থাকুক আইনটি বাস্তবায়ন করতেই হবে, এটি পার্লামেন্টের আইন, বাস্তবায়ন করতে হবে।” সড়কের নিরাপত্তা এবং শৃঙ্খলার স্বার্থে সংশ্লিষ্টদের আইন মেনে চলার জন্য অনুরোধ করে তিনি বলেন, “কোনো প্রকার ধর্মঘট-বন্ধ এসব থেকে বিরত থাকার আহ্বান জানাচ্ছি। আইন প্রয়োগের সময় অযথা যেন বাড়াবাড়ি না হয় সে ব্যাপারে সংশ্লিষ্ট কর্তৃপক্ষকে নির্দেশ দেওয়া হয়েছে।” পরিবহন ধর্মঘটের প্রসঙ্গে মন্ত্রী বলেন, “আমি সেটা জানি, তাদের সাথে আমাদের সচিব আলোচনা করেছেন, আমিও কথা বলেছি, দেখেন না কি হয়। তাই বলে আইন প্রয়োগ না করে সরে যাব এটি কি আপনারা চান? আপনারাও আমাকে সহযোগিতা করুন, তারা তো চাপ দেবেই।” “গতকাল (রোববার) থেকে মাঠ পর্যায়ে (আইনটি) কার্যকর করা শুরু হয়েছে। সচেতনতার জন্য প্রথমে সাতদিন, পরে আরও সাতদিন সময় দিয়েছি। অনেকের আবেদন ছিল, অনুরোধ করেছেন আরও বাড়ানোর জন্য। কোনো অবস্থাতেই বাড়াতে রাজি হইনি। প্রধানমন্ত্রীর সাথে আলোচনা করেছি, এতদিন আগে আইনটি হয়েছে, বাস্তবায়ন না হলে জনস্বার্থের বিরুদ্ধে যাবে।” প্রথম পর্যায়ে আইনটি সহনীয়ভাবে কার্যকর করার নির্দেশনা দেওয়া হয়েছে জানিয়ে মন্ত্রী বলেন, “মোবাইল কোর্ট আইনের তফসিলে আইনটি সংযুক্ত করে যে বিষয়টি অসম্পূর্ণ ছিল গতকাল গেজেট প্রকাশ করা হয়েছে, আজ থেকে মোবাইল কোর্ট কার্যকর হচ্ছে।” “আইন প্রয়োগে যাতে কোনো অসুবিধা না হয়, আইন প্রয়োগকারী সংস্থার অযথা হয়রানি কিংবা বাড়াবাড়ি বন্ধে স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী ও ঊর্ধ্বতন পুলিশ কর্তৃপক্ষের সঙ্গে আলাপ করেছি। সহনীয় মাত্রা মানে বাড়াবাড়ি যেন না করে এটাই বলছি।” পার্কিং সুবিধা নেই বা পথচারীদের হাঁটার জায়গা নেই, রিকশাচালকদের লাইসেন্স নেই- এসব ছাড়া আইনটি কিভাবে বাস্তবায়ন হবে জানতে চাইলে কাদের বলেন, “এ আইন শুধুমাত্র ঢাকার জন্য নয়। ঢাকা সিটি করপোরেশনকে দায়িত্ব দেওয়া হয়েছে, ডেঙ্গু পরিস্থিতির জন্য তাদের অন্যদিকে মনোযোগ ছিল। তারা শিগগিরই মিটিং করবে, আমি নিজেই মিটিং ডেকেছি।” আইনটি বাস্তবায়নে বিধিমালা প্রণয়নের কাজ শেষ পর্যায়ে রয়েছে জানিয়ে সড়কমন্ত্রী বলেন, “সড়ক পরিবহন আইনটি আগের তুলনায় কঠোর করা হয়েছে। আইনটি কঠোর করার উদ্দেশ্য শাস্তি দেওয়া নয়, সকলের কল্যাণে সড়ককে নিরাপদ করা দুর্ঘটনা নিয়ন্ত্রণে আনা। আইনটিতে একটি নতুন বিষয় যুক্ত করা হয়েছে তা হল চালকদের জন্য পয়েন্ট সিস্টেম, উন্নত বিশ্বের মত আইন অমান্য করলে চালকদের পয়েন্ট কর্তন করা হবে। “পরিবহন মালিকদেরও আইনের আওতায় আনা হয়েছে, অভিযুক্ত যিনিই হোন তার বিরুদ্ধে ব্যবস্থা নেওয়ার সুযোগ রয়েছে। দুর্ঘটনায় ক্ষতিগ্রস্ত ব্যক্তি ও তার পরিবারকে আর্থিক সহয়তা দেওয়ার বিধান যুক্ত করা হয়েছে।” আইনটি বাস্তবায়নে বিআরটিএ অতিরিক্ত সময় কাজ করছে জানিয়ে ওবায়দুল কাদের বলেন, “নতুন ডায়নামিক চেয়ারম্যান এসেছে, বিআরটিএতে ভিড় লেগেই আছে। বিআরটিএতে জনবলও বাড়ছে, এটি একটা চ্যালেঞ্জ। সকলে সহযোগিতা করলে চ্যালেঞ্জ মোকাবেলা করতে পারব।”

মিরপুর উপজেলা আ’লীগের সম্মেলন সফল করতে ছাত্রলীগের বিশাল গণমিছিল

নিয়ামুল হক ॥ মিরপুর উপজেলা আওয়ামী লীগের ত্রি-বার্ষিক সম্মেলনে যোগ দিতে ছাত্রলীগ এক বিশাল মিছিল বের করে। কুষ্টিয়া জেলা ছাত্রলীগের সাংগঠনিক সম্পাদক ও মিরপুর উপজেলা ছাত্রলীগের সাধারণ সম্পাদক বিজয় আলী তুফানের নেতৃত্বে  মিছিলটি বের হয়। মিছিলটি উপজেলার বিভিন্ন সড়ক প্রদক্ষিণ  শেষে সম্মেলনস্থলে শেষ হয়। মিছিলে উপস্থিত ছিলেন জেলা ছাত্রলীগ নেতা ইকবাল হাসান ও মিরপুর উপজেলা ছাত্রলীগের সহ-সভাপতি আশিকুর রহমান শুভ এবং ইউনিয়ন ছাত্রলীগের যুগ্ম সাধারণ সম্পাদক রাজীব ইসলামসহ বহলবাড়ীয়া ইউনিয়ন ছাত্রলীগের বিভিন্ন পর্যায়ের নেতৃবৃন্দসহ শত শত কর্মী-সমর্থক।

কালুখালীতে ১৬ ডিসেম্বর উদযাপনের প্রস্তুতিসভা

কালুখালী প্রতিনিধি ॥ গতকাল সোমবার রাজবাড়ী জেলাধীন কালুখালীতে ১৬ ডিসেম্বর মহান বিজয় দিবস ২০১৯ উদযাপন উপলক্ষ্যে প্রস্তুতিমূলক আলোচনা সভা অনুষ্ঠিত হয়েছে। উপজেলা প্রশাসনের আয়োজনে বিকাল ৩টায় উপজেলা পরিষদের সম্মেলন কক্ষে অনুষ্ঠিত প্রস্তুতি সভায় উপজেলা নির্বাহী অফিসার (ভারপ্রাপ্ত) শেখ নুরুল আলম এর সভাপতিত্বে প্রধান অতিথি হিসেবে আলোচনা করেন উপজেলা পরিষদের চেয়ারম্যান আলিউজ্জামান চৌধুরী (টিটো)। তিনি তার বক্তব্যে ১৬ ডিসেম্বর মহান বিজয় দিবস যথাযথভাবে উদযাপনের জন্য সকলের সহযোগীতা কামনা করেন। এসময় অন্যান্যের মধ্যে উপজেলা ভাইস চেয়ারম্যান শেখ এনায়েত হোসেন, উপজেলা আওয়ামীলীগের ভারপ্রাপ্ত সভাপতি আব্দুল খালেক মাস্টার, ভারপ্রাপ্ত সাধারণ সম্পাদক খায়রুল ইসলাম খায়ের, উপজেলা মৎস্য কর্মকর্তা মোঃ আব্দুস সালাম, প্রকল্প বাস্তবায়ন কর্মকর্তা নাসরিন সুলতানা, অফিসার ইনচার্জের পক্ষে এসআই ফজলুল হক, মুক্তিযোদ্ধা সাবেক কমান্ডার সার্জেন্ট (অব) আকামত আলী মন্ডল, কালুখালী সরকারী কলেজের সহকারী অধ্যাপক মঞ্জুর রহমান মিয়া, রতনদিয়া রজনীকান্ত সরকারী মডেল উচ্চ বিদ্যালয়ের প্রধান শিক্ষক মোঃ আয়ুব আলী, কালুখালী প্রেসক্লাবের সভাপতি ফজলুল হক, সাধারণ সম্পাদক মোখলেছুর রহমান ও উপজেলা শিল্পকলা একাডেমীর সাধারণ সম্পাদক জাহিদ হোসেন সহ অন্যান্যরা উপস্থিত ছিলেন।

 

ঝিনাইদহে স্কুলছাত্র সিফাত হত্যা মামলায় ২ জন গ্রেফতার

ঝিনাইদহ  প্রতিনিধি ॥ ঝিনাইদহে স্কুলছাত্র সিফাত হত্যা মামলার প্রধান আসামীসহ ২ জনকে গ্রেফতার করেছে পুলিশ। গতকাল সোমবার ভোররাতে ফরিদপুরের সালতা এলাকা থেকে তাদের গ্রেফতার করা হয়। গ্রেফতারকৃতরা হলো-মামলার প্রধান আসামী শহরের কালিকাপুর এলাকার আব্দুল গফুরের ছেলে লিয়ন হোসেন (১৮) ও ২য় আসামী একই এলাকার মৃত রফিউদ্দিনের ছেলে সুমন হোসেন (১৮)। ঝিনাইদহ সদর থানার ওসি মঈন উদ্দিন জানান, সিফাত হত্যা মামলার প্রধান আসামী লিয়ন ও দ্বিতীয় আসামী সুমন ফরিদপুরের সালতা এলাকায় অবস্থান করছে এমন সংবাদের ভিত্তিতে সেখানে অভিযান চালিয়ে তাদের গ্রেফতার করা হয়। পরে সোমবার সকালে তাদের স্বীকারোক্তি মোতাবেক শহরের মডার্ণমোড় এলাকা থেকে উদ্ধার করা হয় হত্যাকান্ডে ব্যবহৃত ছুরি। দুপুরে তাদের আদালতে পাঠানো হয়। উল্লেখ্য, গত শনিবার সকালে শহরের কালিকাপুর মোড়ে বন্ধুদের সাথে বসে ছিল শহরের উজির আলী স্কুল এন্ড কলেজের ১০ শ্রেণীর ছাত্র সিফাত। এসময় পুর্ব শক্রতার জের ধরে লিয়ন, সুমনসহ আরও ২ জন সিফাতের বন্ধু মাহির উপর হামলা চালায়। এসময় সিফাত তাদের বাঁধা দিলে সিফাতকে ছুরিকাঘাত করে পালিয়ে যায়  তারা। সেখান থেকে সিফাত ও মাহিকে উদ্ধার করে ঝিনাইদহ সদর হাসপাতালে ভর্তি করা হয়। পরে সিফাতকে উন্নত চিকিৎসার জন্য ফরিদপুর নেওয়ার পথে মারা যায়। এ ঘটনায় ওইদিন নিহতের পিতা মনোয়ার মিয়া বাদী হয়ে লিওন ও সুমনের নাম উল্লেখসহ অজ্ঞাত ৪/৫ জনকে আসামী করে ঝিনাইদহ সদর থানায় একটি মামলা দায়ের করে।

কুষ্টিয়া কালেক্টরেট স্কুলের ৭ম প্রতিষ্ঠা বার্ষিকী পালন

সুজন কর্মকার ॥ কুষ্টিয়া কালেক্টরেট স্কুল এন্ড কলেজের ৭ম প্রতিষ্ঠা বার্ষিকী পালন করা হয়েছে। এ উপলক্ষে ১৮ নভেম্বর সোমবার সকালে প্রতিষ্ঠানটির হল রুমে আলোচনা সভা, সাংস্কৃতিক অনুষ্ঠান ও দোয়া মাহফিলের আয়োজন করা হয়। এতে প্রধান অতিথির বক্তব্য রাখেন কুষ্টিয়া কালেক্টরেট স্কুল এন্ড কলেজের অধ্যক্ষ ও কুষ্টিয়ার জেলা প্রশাসক মোঃ আসলাম হোসেনের সহ-ধর্মিনী মোসাঃ জাকিয়া সুলতানা। তিনি এ সময় শিক্ষার্থীদের উদ্দেশ্যে বিভিন্ন দিক নির্দেশনামূলক বক্তব্য রাখেন। কুষ্টিয়া কালেক্টরেট স্কুল এন্ড কলেজের প্রধান শিক্ষক মৃনাল কান্তি সাহা’র সভাপতিত্বে বিশেষ অতিথি ছিলেন জেলা প্রশাসকের সহকারী কশিনার ও নির্বাহী ম্যাজিষ্ট্রেট মাহেরা নাজনীন ও মোছাঃ মুনিরা সুলতানা।  বক্তব্য রাখেন সহকারী শিক্ষক আলিমুল আলরাজী ও আজিজুর রহমান। আলোচনা সভায় শেষে দোয়া পরিচালনা করেন কালেক্টরেট জামে মসজিদের পেশ ঈমাম হাফেজ মাওলানা আব্দুস সামাদ। এ সময় অন্যান্য সকল শিক্ষক-শিক্ষার্থীবৃন্দ উপস্থিত ছিলেন। শেষে সকলের মাঝে তবারক বিতরণ করা হয়।

নিত্য প্রয়োজনীয় দ্রব্যমূল্যের উর্দ্ধগতির প্রতিবাদে কুষ্টিয়ায় বিএনপির সমাবেশ

পেঁয়াজসহ নিত্য প্রয়োজনীয় দ্র্রব্যের অস্বাভাবিক মূল্যবৃদ্ধির প্রতিবাদে কুষ্টিয়ায় বিএনপি’র উদ্যোগে গতকাল সোমবার সকাল ১০টায় দলীয় কার্যালয়ে প্রতিবাদ সমাবেশ অনুষ্ঠিত হয়েছে। বিএনপি চেয়ারপার্সনের উপদেষ্টা জেলা বিএনপির সভাপতি সৈয়দ মেহেদী আহমেদ নমিীর সভাপতিত্বে বক্তব্য রাখেন বিএনপির জাতীয় নির্বাহী কমিটির স্থানীয় সরকার বিষয়ক সম্পাদক জেলা বিএনপির সাধারণ সম্পাদক সাবেক এমপি অধ্যক্ষ সোহরাব উদ্দিন। মেহেদী রুমী তার বক্তব্যে বলেন, সরকারের প্রচ্ছন্ন ছত্রছায়ায় সিন্ডিকেটের নজর পেয়াজ চালসহ নিত্যপ্রয়োজনীয় দ্রব্যের বাজারে। পেঁয়াজের সঙ্গে চালের দামও পাল্লা দিয়ে বাড়ছে। পেঁয়াজের মতোই চালও জনগণকে বাড়তি দামে কিনতে হচ্ছে। যে যেভাবে পারছে সাধারণ মানুষের টাকা লুটে নিচ্ছে। তিনি বলেন, ‘গত কয়েকদিনে চালের দাম হু হু করে বেড়েই চলেছে। নিত্য প্রয়োজনীয় দ্রব্যের দাম নিয়ন্ত্রণে সরকারের কোনো সংস্থার দৃশ্যমান পদক্ষেপ নেই। তিনি বলেন, পেঁয়াজের লাগামহীন দাম বাড়ার সঙ্গে বাণিজ্য মন্ত্রণালয় ও সরকার জড়িত। এর ফলে ব্যবসায়ী সিন্ডিকেটের বিষয়ে কিছু করা যাচ্ছে না। সমাবেশে আরো বক্তব্য রাখেন জেলা বিএনপির যুগ্ম সম্পাদক মিরাজুল ইসলাম রিন্টু, আব্দুর রাজ্জাক বাচ্চু, বিএনপি নেতা খন্দকার মিয়ারুল ইসলাম, জেলা কৃষকদলের আহবায় এস এম গোলাম কবির, ১নং ওয়ার্ড বিএনপির সভাপতি আলী আফসার মল্লিক পিন্টু, সাধারণ সম্পাদক মাহাফুজুর রহমান জিন্না, জেলা যুবদলের সহ-সভাপতি ওহিদুল ইসলাম সাবু, জেলা সেচ্ছাসেবক দলের সহ-সভাপতি জহুরুল ইসলাম টিটু, শহর কৃষকদলের আহবায়ক বাবলা আমিন চৌধুরী, কুমারখালী থানা কৃষকদলের সভাপতি ইবাদত আলী, চাপরা ইউপি বিএনপির যুগ্ম আহবায়ক আব্দুল্লাহ শেখ, জেলা ছাত্রদলের সাংগঠনিক সম্পাদক রোকনুজ্জামান রাসেল, কুমারখালী থানা যুবদলের দপ্তর সম্পাদক ফেরদৌস সানি, জেলা সেচ্ছাসেবক দলের সহ-প্রচার সম্পাদক লেখন ইসলাম অন্তর, সহ-সমাজ কল্যান বিষয়ক সম্পাদক তারভির ফয়সাল রাহুল প্রমুখ। সংবাদ বিজ্ঞপ্তি

নকশা না মেনে বাড়ি

চিত্রনায়ক শাকিব খানকে জরিমানা

ঢাকা অফিস ॥ নকশা না মেনে বাড়ি নির্মাণ করায় চিত্রনায়ক শাকিব খানকে ১০ লাখ টাকা জরিমানা করেছে রাজউকের ভ্রাম্যমাণ আদালত। রাজউকের অথরাইজড অফিসার মোহাম্মদ হোসেন জানান, সোমবার দুপুরে রাজধানীর নিকেতন আবাসিক এলাকার ৬ নম্বর সড়কে তিনটি বাড়ির মালিকের বিরুদ্ধে একই অভিযোগে ব্যবস্থা নেওয়া হয়। এর মধ্যে ১ নম্বর হোল্ডিংয়ে শাকিব খানের বাড়ি। নির্মাণাধীন ভবনটির সামনে শাকিব খান রানা নামে একটি সাইনবোর্ডও রয়েছে। নকশা না মেনে বাড়তি অংশ নির্মাণ করায় সেখানে ১০ লাখ জরিমানা করা করে রাজউক। ভ্রাম্যমাণ আদালতের অভিযানের সময় নির্মাণাধীন ওই বাড়িতে শাকিব খানের ভগ্নিপতি ও কেয়ারটেকার উপস্থিত ছিলেন। তবে শাকিব সে সময় ছিলেন না। এ বিষয়ে জানতে চাইলে শাকিব খান টেলিফোনে বলেন, “বারান্দা থেকে এক ইঞ্চি বাড়তি ছিল। আগে নোটিস দিতে পারত, তাহলে আমরা ভেঙে নিতাম। যেহেতু রাজউক আইন অনুযায়ী জরিমানা করেছে, সেহেতু আমরা টাকাটা দিয়ে দেব।” এ অভিযানের নেতৃত্বে ছিলেন রাজউকের নির্বাহী ম্যাজিস্ট্রেট আশরাফ হোসেন। নিকেতন ৬ নম্বর সড়কের ২১ নম্বর হোল্ডিংয়ের মালিককে তিনি ৫ লাখ টাকা জরিমানা করেন এবং ৫ নম্বর হোল্ডিংয়ের একটি স্থাপনা সিলগালা করে দেওয়া হয় বলে মোহাম্মদ হোসেন জানান।

মধ্যপ্রাচ্যের ৫ দেশে গৃহকর্মী না পাঠাতে রিট

ঢাকা অফিস ॥ যথাযথ আইনি সুরক্ষা নিশ্চিত না করে মধ্যপ্রাচ্যের পাঁচটি দেশে গৃহকর্মী পাঠানোর ওপর নিষেধাজ্ঞা চেয়ে হাইকোর্টে রিট দায়ের হয়েছে। দেশগুলো হলো- সৌদি আরব, জর্ডান, লেবানন, সিরিয়া ও ইরাক। একইসঙ্গে মানব পাচার দমন ও প্রতিরোধ আইনে করা মামলার বিচারের জন্য ট্রাইব্যুনাল গঠনের নির্দেশনা চাওয়া হয়েছে রিটে। কাজ করতে গিয়ে নির্যাতনের শিকার বিদেশ ফেরত নারী শ্রমিকদের প্রত্যাবর্তন, পুনর্বাসন ও ক্ষতিপূরণ দেয়ার নির্দেশনা চাওয়া হয়েছে রিটে। ১২ নভেম্বর কক্সবাজারের রাজিয়া খাতুন নামের এক নারী এই রিট আবেদন করেন। রাজিয়া বেগমের পক্ষে সুপ্রিম কোর্টের আইনজীবী জামান আক্তার বুলবুল এই রিট করেন। রিটে বিবাদী করা হয়েছে আইন সচিব, স্বরাষ্ট্র সচিব, প্রবাসী কল্যাণ সচিবসহ সংশ্লিষ্টদের। বিচারপতি এফ আর এম নাজমুল আহাসান ও বিচারপতি কে এম কামরুল কাদের সমন্বয়ে গঠিত হাইকোর্টের দ্বৈত বেঞ্চে এ রিটের শুনানি হবে।

ইবিতে ‘ডি’ ইউনিটের ভর্তি পরীক্ষার ফল প্রকাশ

ইসলামী বিশ্ববিদ্যালয়ে ২০১৯-২০২০ শিক্ষাবর্ষে ১ম বর্ষ স্নাতক (সম্মান) শ্রেণিতে ‘ডি’ ইউনিটের ভর্তি পরীক্ষার ফল প্রকাশিত হয়েছে। গতকাল ১৮ নভেম্বর সন্ধ্যায় ভিসি অফিসে ভাইস চ্যান্সেলর প্রফেসর ড. মোঃ হারুন-উর-রশিদ আসকারী (ড. রাশিদ আসকারী)’র নিকট ইউনিটটির ফল হস্তান্তর করা হয়। এসময় রেজিস্ট্রার (ভারপ্রাপ্ত) এস. এম. আব্দুল লতিফ, বিজ্ঞান অনুষদের ডিন প্রফেসর ড. এস. এম. মোস্তফা কামাল, সিন্ডিকেট সদস্য প্রফেসর ড. মোঃ মাহবুবর রহমান, ছাত্র উপদেষ্টা ও প্রক্টর (ভারপ্রাপ্ত) প্রফেসর ড. পরেশ চন্দ্র বর্ম্মন প্রমুখ সেখানে উপস্থিত ছিলেন। ‘ডি’ ইউনিটের পরীক্ষায় ৫৫০ আসনের জন্য আবেদন করেন ২৩ হাজার ১৫২ জন, যাদের মধ্যে ১৯ হাজার ৬১৩ পরীক্ষার্থী পরীক্ষায় অংশগ্রহণ করেন। উত্তীর্ণ হয়েছেন ৩৮৭৭ জন ভর্তিচ্ছু।ফলাফল সংক্রান্ত তথ্য বিশ্ববিদ্যালয়ের ওয়েবসাইট (িি.িরঁ.ধপ.নফ)-এ পাওয়া যাবে। সংবাদ বিজ্ঞপ্তি

আবরার ফাহাদ হত্যার চার্জশিট গ্রহণ

পলাতক ৪ জনের বিরুদ্ধে গ্রেফতারি পরোয়ানা জারি

ঢাকা অফিস ॥ বাংলাদেশ প্রকৌশল বিশ্ববিদ্যালয়ের (বুয়েট) শিক্ষার্থী আবরার ফাহাদকে পিটিয়ে হত্যার ঘটনায় ২৫ জনকে আসামি করে করা চার্জশিট গ্রহণ করেছেন আদালত। এরমধ্য দিয়ে আবরার হত্যার বিচার কার্যক্রম শুরু হলো। গতকাল সোমবার ঢাকার অতিরিক্ত মহানগর হাকিম কায়সারুল ইসলাম মামলার অভিযোগপত্র (চার্জশিট) গ্রহণ করেন। সেই সঙ্গে পলাতক ৪ আসামির বিরুদ্ধে গ্রেফতারি পরোয়ানা জারি করেন। পাশাপাশি গ্রেফতার-সংক্রান্ত তামিল প্রতিবেদন আগামী ৩ ডিসেম্বর আদালতে উত্থাপনের কথা বলা হয়েছে। যাদের বিরুদ্ধে পরোয়ারা জারি করা হয়েছে তারা হল- মোর্শেদুজ্জামান জিসান, এহতেশামুল রাব্বি তানিম, মোর্শেদ অমত্য ইসলাম ও মোস্তবা রাফিদ। এদের মধ্যে প্রথম তিনজন এজাহারভুক্ত ও শেষের জন এজাহারবহির্ভূত। এর আগে ১৩ নভেম্বর আবরার হত্যায় ২৫ জনকে আসামি করে আদালতে অভিযোগপত্র (চার্জশিট) জমা দেয় ঢাকা মহানগর গোয়েন্দা পুলিশ (ডিবি)। চার্জশিটে যাদের আসামি করা হয়েছে তারা হল- মেহেদী হাসান রাসেল, মুহতাসিম ফুয়াদ, অনিক সরকার, মেহেদী হাসান রবিন, ইফতি মোশররফ সকাল, মনিরুজ্জামান মনির, মেফতাহুল ইসলাম জিয়ন, অমিত সাহা, মাজেদুল ইসলাম, মুজাহিদুর রহমান, তাবাখারুল ইসলাম তানভীর, হোসেন মোহাম্মদ তোহা, মো. জিসান, আকাশ হোসেন, শামীম বিল্লাহ, এ এস এম নাজমুস সাদাত, এহতেশামুল রাব্বি তানিম, মো. মোর্শেদ, মোয়াজ আবু হুরায়রা, মুনতাসির আল জেমি, মিজানুর রহমান, শামসুল আরেফিন রাফাত, ইশতিয়াক আহমেদ মুন্না মোশতুবা রাফি এবং এস এম মাহমুদ সেতু। পলাতক রয়েছেন জিসান, তানিম, মোরশেদ, মোশতুবা রাফি। তাদের বিরুদ্ধে আজ গ্রেফতারি পরোয়ানা জারি করা হলো।

নতুন সাজে সেজেছে দৌলতপুর : নেতা-কর্মীরা উজ্জীবিত

দৌলতপুর আওয়ামী লীগের ত্রি-বার্ষিক সম্মেলন আজ

শরীফুল ইসলাম ॥ কুষ্টিয়ার দৌলতপুর উপজেলা আওয়ামী লীগের ত্রি-বার্ষিক সম্মেলন আজ। প্রায় দেড়যুগ পর আজ মঙ্গলবার অনুষ্ঠিত হতে যাচ্ছে এ সম্মেলন। সম্মেলনকে ঘিরে নতুন সাজে সেজেছে দৌলতপুর। সেই সাথে উজ্জীবিত এখন দৌলতপুর আওয়ামী লীগের নেতা-কর্মীসহ অঙ্গ সংগঠনের নেতা-কর্মীরা। সম্মেলনকে সফল ও সার্থক করতে সকল প্রস্তুতিও সম্পন্ন করা হয়েছে। এ উপজেলায় সর্বশেষ সম্মেলন অনুষ্ঠিত হয়েছিল ২০০৩ সালে। দীর্ঘদিন ধরে সম্মেলন না হওয়ার ফলে দলীয় কার্যক্রমে কিছুটা ভাটা পড়েছিল। কিন্তু বিলম্বে হলেও এ সাম্মেলনকে কেন্দ্র করে চাঙ্গা হয়েছে আওয়ামী লীগ নেতা-কর্মী। এদিকে সম্মেলনকে ঘিরে নেতাকর্মীদের মাঝে উৎসাহ-উদ্দীপনার কমতি নেই। উপজেলার ১৪টি ইউনিয়ন আওয়ামী লীগের সম্মেলনও সফল ভাবে সম্পন্ন হয়েছে। মাঠ পর্যায়ের নেতা-কর্মীদের মতে, এ উপজেলায় পূর্বের যে কোন সময়ের চেয়ে বর্তমানে আওয়ামীলীগের নেতা-কর্মীরা ঐক্যবদ্ধ। এদিকে সম্মেলনকে কেন্দ্র করে দৌলতপুর ও আশপাশের এলাকাকে বর্ণিল সাজে সাজানো হয়েছে। পথে পথে শোভা পাচ্ছে নেতাকর্মীদের শুভেচ্ছা ও অভিনন্দন সম্বলিত নানা ধরনের ব্যানার-ফেস্টুন ও প্ল্যাকার্ড। রাস্তার মোড়ে মোড়ে তৈরী করা হয়েছে তোরণ। আজ মঙ্গলবার বেলা ২ টায় দৌলতপুর ডিগ্রি কলেজ মাঠে এ সম্মেলন অনুষ্ঠিত হবে। সম্মেলনে প্রধান অতিথি থাকবেন বাংলাদেশ আওয়ামী লীগের যুগ্ম সাধারন সম্পাদক মাহবুবউল আলম হানিফ এমপি। সম্মেলন উদ্বোধন করবেন জেলা আওয়ামী লীগের সভাপতি সদর উদ্দিন খান। দৌলতপুর আওয়ামী লীগের সভাপতি আফাজ উদ্দিন আহমেদের সভাপতিত্বে সম্মেলনে উপস্থিত থাকবেন কুষ্টিয়া-১ দৌলতপুর আসনের এমপি আ, কা, ম সরওয়ার জাহান বাদশা, জেলা আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক আজগর আলী। এছাড়াও সম্মেলনে কেন্দ্রীয়, জেলা ও উপজেলার আওয়ামী লীগের নেতৃবৃন্দ বক্তব্য রাখবেন। সম্মেলন থেকে আগামী তিন বছরের জন্য ১৪টি ইউনিয়ন ও উপজেলা কমিটির নাম ঘোষনা করা হতে পারে বলে দলীয় সূত্রে জানা গেছে। যার কারণে পছন্দের পদ পাওয়ার জন্য অনেকে তদবিরও চলাচ্ছেন সমান তালে। তবে সাধারন কর্মীদের প্রত্যাশা, তদবির নয় যোগ্যরাই কমিটিতে স্থান পাবেন। এদিকে সম্মেলনেকে ঘিরে নিরাপত্তা জোরদার করা হয়েছে। এর আগে প্রায় এক মাস ধরে উপজেলার ১৪ ইউনিয়ন সম্মেলনে সম্পন্ন হলেও কোন কমিটি ঘোষনা হয়নি। সম্মেলনে প্রতিটি ইউনিয়নের বিপুল সংখ্যক নেতাকর্মীর পদচারনায় উৎসবের পরিনত হবে এবং উপজেলার সকল নেতার ঐক্যবদ্ধ উপস্থিতি কর্মীদের মাঝে ব্যাপক উৎসাহ সৃষ্টি করেছে। উপজেলা আওয়ামীলীগের একাধিক নেতার সাথে কথা বলে জানা গেছে, দীর্ঘদিন পর উপজেলা আওয়ামীলীগের সম্মেলন অনুষ্ঠিত হতে যাচ্ছে। দলকে শক্তিশালী করে আওয়ামী লীগের নেতৃত্বে দেশকে সামনের দিকে এগিয়ে নিতে উপজেলার সব কমিটিগুলোকে ঢেলে সাজানো হচ্ছে। দলের ভেতরেও নেত্রী যে শুদ্ধি অভিযান শুরু করেছেন তার প্রভাব উপজেলা ও ইউনিয়ন কমিটিতে লক্ষ্য করা যাবে। ব্যক্তির অপকর্মের দায় দল নেবে না। তাই বিতর্কিত ব্যক্তিদের পদ পদবিতে আসার সম্ভাবনা কম। দলীয় আনুগত্যকারী ও ক্লীন ইমেজের নেতারা পদ পদবিতে এগিয়ে থাকবে। এদিকে সম্মেলনের সর্বশেষ প্রস্তুতি ও সার্বিক খোঁজ-খবর নিতে গতকাল দুপুরে দৌলতপুর কলেজ মাঠের সম্মেলনস্থলে উপস্থিত হয়েছিলেন, জেলা আওয়মী লীগের যুগ্মসাধারণ সম্পাদক প্রকৌশলী ফারুকুজ্জামান, কুষ্টিয়া-১ দৌলতপুর আসনের সংসদ সদস্য এ্যাড. আ, কা, ম সরওয়ার জাহান বাদশাসহ অন্যান্য নেতৃবৃন্দ। এসময় সম্মেলন প্রস্তুতি কমিটির সদস্য অধ্যক্ষ ছাদিকুজ্জামান খানসহ অন্যান্য সদস্যবৃন্দ উপস্থিত ছিলেন। দৌলতপুর আসনের আওয়ামীলীগ দলীয় সাংসদ ও সাবেক ছাত্রনেতা এ্যাড. আ. কা. ম সরওয়ার জাহান বাদশা বলেন, জননেত্রী শেখ হাসিনার নেতৃত্বে দুর্নীতি, মাদক, জঙ্গীমুক্ত বাংলাদেশ উন্নয়নের পথে এগিয়ে যাচ্ছে। সমাজ পরিবর্তন ও শেখ হাসিনার হাতকে শক্তিশালী করতে সৎ, যোগ্য ও ক্লীন ইমেজের নেতারাই দলের গুরুত্বপূর্ণ দায়িত্ব পাবেন। কোন বিতর্কিত ব্যক্তিকে আওয়ামীলীগের দায়িত্ব দেয়া হবে না বলে তিনি প্রত্যাশা করেন।

ভারতের সাথে সমঝোতা স্মারক নিয়ে বিএনপি চিঠিকে ‘অন্তঃসার শূন্য’ বললেন তথ্যমন্ত্রী

ঢাকা অফিস ॥ প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার সাম্প্রতিক ভারত সফর নিয়ে তাঁর কাছে পাঠানো বিএনপির চিঠিকে ‘অন্তঃসার শূন্য’ বলে অভিহিত করে তথ্যমন্ত্রী ড. হাছান মাহমুদ বলেন, এই চিঠিতে জনগণকে বিভ্রান্ত করতে দলটির অপচেষ্টার প্রতিফলন ঘটেছে। তথ্যমন্ত্রী তার মন্ত্রণালয়ের অফিসে সাংবাদিকদের সাথে আলাপকালে একথা বলেন। তিনি বলেন, প্রধানমন্ত্রীর নয়াদিল্লী সফরকালে স্বাক্ষরিত চুক্তিগুলো জনগণ ও রাষ্ট্রপতি মো. আব্দুল হামিদের কাছে প্রকাশ করা হয়নি বলে বিএনপি দাবি করেছে। হাছান একে জনগণকে বিভ্রান্ত করার হীন প্রয়াস হিসেবে উল্লেখ করেন। এ ব্যাপারে তিনি বলেন, ‘মাননীয় প্রধানমন্ত্রী সফরের পর রাষ্ট্রপতির সাথে দেখা করে তাকে এই সফর সম্পর্কে অবহিত করেন। তিনি এই সফরে স্বাক্ষরিত চুক্তিগুলো সম্পর্কে গণমাধ্যমের পাশাপাশি সংসদের সব কিছু প্রকাশ করেছেন।’ বিএনপির কঠোর সমালোচনা করে হাছান বলেন, ঢাকায় ভারতীয় ব্যাংকের একটি শাখা খোলা ছাড়া আর কোন চুক্তি যে স্বাক্ষরিত হয়নি বিএনপি তা বুঝতেই পারেনি। তিনি আরো বলেন, ‘আমি এটা ভেবে অবাক হচ্ছি যে বিএনপি নেতৃবৃন্দ সমঝোতা স্মারক ও চুক্তির মধ্যে পার্থক্য করতে পারেন না। বিএনপি’র চিঠির অভিযোগগুলো সম্পূর্ণ অন্তঃসার শূন্য এবং এগুলো তাদের রাজনৈতিক স্টান্টবাজি ছাড়া কিছুই নয়।’ হাছান বলেন, বিএনপি ভারত-বিরোধী রাজনীতিতে অভ্যস্ত। এটাই তাদের চরিত্র। এরা জনগণকে বিভ্রান্ত করতে ভারত-বিরোধী বিবৃতি দেয়। তথ্যমন্ত্রী বলেন, বিএনপি নেত্রী বেগম খালেদা জিয়া তার শাসন আমলে ভারতের সাথে সাতটি চুক্তি করেছিলেন। কিন্তু এই চুক্তিগুলো সম্পর্কে তিনি কখনোই রাষ্ট্রপতি বা জনগণকে কিছু জানাননি। তিনি আরো বলেন, ‘বাংলাদেশ ভারতকে পানি দেয়নি। তবে, বিএনপি নেতারা ফেনী নদীর এই ইস্যুকে নিয়ে মিথ্যাচার করেই যাচ্ছেন। ভারত এর আগে ফেনী নদীর পানি থেকে খাবার পানি সংগ্রহ করত, যা ছিল নদীটির মোট পানির মাত্র ০.৫ শতাংশ। এখন বাংলাদেশ সরকার এটিকে একটি কাঠামোর আওতায় নিয়ে এসেছে।’ তিনি আরো বলেন, ‘আমরা আমাদের চাহিদা মিটিয়ে অতিরিক্ত বোতলজাত এলপিজি ভারতের ত্রিপুরা রাজ্যে রপ্তানী করব। ভারত বঙ্গপসাগরে আমাদের কোস্ট গার্ডের জন্য ২০টি রাডার স্থাপন করার অনুমোদন দিয়েছে। ওগুলো আমাদের কোস্ট গার্ডের সম্পদ হবে।’ তিনি আরও বলেন, ‘এছাড়াও এরআগে চট্টগ্রাম সমুদ্রবন্দর ও মংলা সমুদ্রবন্দর ব্যবহারের চুক্তি স্বাক্ষরিত হয়েছে। ভারত যদি আমাদের চট্টগ্রাম ও মংলা বন্দর ব্যবহার করে, তবে, আমরা বৈদেশিক মুদ্রা অর্জনে সক্ষম হবো।’ তথ্যমন্ত্রী বলেন, বিএনপি প্রধান বেগম খালেদা জিয়ার গ্রেফতারের পর প্রধানমন্ত্রীর কাছে এটা তাদের প্রথম চিঠি। আওয়ামী লীগের প্রচার ও প্রকাশনা সম্পাদক হাছান মাহমুদ বলেন, তবে এই চিঠিতে বেগম জিয়া অথবা তার মুক্তির ব্যাপারে একটি কথাও নেই। তারা কি (বিএনপি) বেগম জিয়ার মুক্তি চায়?’ এই চিঠি প্রেরণের জন্য বিএনপি’র সমালোচনা করে তথ্যমন্ত্রী বলেন, এই চিঠির মাধ্যমে বেগম জিয়াকে মুক্ত করার ক্ষেত্রে বিএনপি অনাগ্রহ এবং তাদের ভারত বিরোধী সেন্টিমেন্ট লালনেরই বহিঃপ্রকাশ ঘটেছে। তিনি সাধারণ মানুষের মধ্যে বিভ্রান্তি সৃষ্টি না করার জন্য বিএনপি নেতৃবৃন্দের প্রতি আহ্বান জানান। গত মাসে প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার ভারত সফরকালে সম্পাদিত দ্বিপাক্ষিক চুক্তির ব্যাপারে বিস্তারিত তথ্য জানতে চেয়ে বিএনপি’র পক্ষ থেকে দলের মহাসিচব মির্জা ফখরুল ইসলাম আলমগীর স্বাক্ষরিত একটি চিঠি দেয়া হয় প্রধানমন্ত্রীকে। হাছান মাহমুদ বলেন, প্রধানমন্ত্রী দেশের স্বার্থহানি হতে পারে এমন কোন চুক্তি করেননি। তিনি বলেন, ‘প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার নেতৃত্বে আমরা ভারত ও মিয়ানমারের বিরুদ্ধে সমুদ্রসীমার মামলা করে বিজয় অর্জন করেছি এবং ছিটমহল সমস্যার সমাধান করেছি।’

কুষ্টিয়ায় আন্ত:জেলা পুরোপুরি ও দুরপাল্লার অনেক বাস চলাচল বন্ধ

নিজ সংবাদ ॥ সড়ক পরিবহন আইনের কয়েকটি ধারা সংশোধনের দাবীতে কুষ্টিয়ায় বাস ধর্মঘট করছে শ্রমিকরা। এর ফলে কুষ্টিয়ার সাথে আন্ত:জেলা বাস চলাচল পুরোাপুরি বন্ধ রয়েছে। গতকাল সোমবার সকাল থেকে কুষ্টিয়া থেকে ছেড়ে যায়নি কোন বাস। একই সাথে বন্ধ রয়েছে উত্তরবঙ্গের সাথে দক্ষিণবঙ্গের যোগাযোগ। তবে কুষ্টিয়া থেকে ঢাকাগামী দুরপাল্লার পরিবহন কিছু কিছু চলাচল করলেও অধিকাংশ বন্ধ রয়েছে। এতে ভোগান্তিতে পড়েছে যাত্রীরা। এবিষয়ে কুষ্টিয়া মটর শ্রমিক ইউনিয়নের সভাপতি মাহাবুল আলম জানান অধিকাংশ পরিবহন শ্রমিকদের লাইসেন্স নেই। তাছাড়া ফিটনেস নেই অনেক পরিবহনেরই। এমনতাবস্থায় মামলার ঝুঁকি নিয়ে পরিবহন চালানো সম্ভব নয়। এক প্রকার বাধ্য হয়েই স্বেচ্ছায় বাস চলাচল বন্ধ রেখেছে শ্রমিকরা।

এদিকে সড়ক পরিবহন আইন  সোমবার থেকে কার্যকর হবার কথা থাকলেও এখন পর্যন্ত চালু হয়নি। তবে দুপুরের মধ্যে আইন কার্যকর করতে মাঠে নামবে আইনশৃঙ্খলা বাহিনী এমনটিই নিশ্চিত করেছেন কুষ্টিয়া ট্রাফিক বিভাগের পরিদর্শক ফকরুল ইসলাম। অন্যদিকে পরিবহন ধর্মঘটের ফলে দুর্ভোগে পড়েছে সাধারণ যাত্রীরা।  মিরপুর থেকে আসা যাত্রী রিপন ও আনিস জানান, বাস না চলাচল করায় ইজি বাইকে আসা যাওয়া করতে হচ্ছে। এতে সময় ও ভাড়া বেশি লাগছে।’ জেলা বাস মিনিবাস মালিক গ্র“পের সভাপতি আজগর আলী বলেন,‘ চালক ও শ্রমিকরা কাজে আসছে না। তাদের অনেকের কাগজপত্র ঠিক নেই। বিষয়টি নিয়ে আমরা আলোচনা করছি। সমাধান হয়ে যাবে বলে আশা করছি।’