গোটা দেশটাই আজ টর্চার সেল – রিজভী

ঢাকা অফিস ॥ বুয়েটছাত্র আবরার ফাহাদকে হলের কক্ষে ডেকে নিয়ে ছাত্রলীগের একদল নেতাকর্মীর পিটিয়ে হত্যার ঘটনায় খুনিদের বিচারের দাবিতে আন্দোলনের সাথে একাত্মতা প্রকাশ করে বিএনপি বলেছে, সরকার গোটা দেশটাকে ‘টর্চার সেলে’ পরিণত করেছে। বুধবার সকালে এক সংবাদ সম্মেলনে দলের জ্যেষ্ঠ যুগ্ম মহাসচিব রুহুল কবির রিজভী বলেন, “আমরা আন্দোলনরত ছাত্র-ছাত্রীদের প্রতিটি দাবির সাথে একাত্মতা ঘোষণা করছি।”একই সঙ্গে এই হত্যাকা-ে জড়িত অভিযোগে শেরে বাংলা হলের ২০১১ নম্বর কক্ষের আবাসিক ছাত্র বুয়েট ছাত্রলীগের আইন বিষয়ক উপ-সম্পাদক অমিত সাহাকে অবিলম্বে গ্রেপ্তারের দাবিও জানিয়েছে দলটি।রোববার রাতে তড়িৎ কৌশল বিভাগের দ্বিতীয় বর্ষের ছাত্র আবরারকে এই কক্ষেই ডেকে নিয়ে গিয়ে বুয়েট ছাত্রলীগের নেতা-কর্মীরা পিটিয়ে হত্যা করেছে বলে অভিযোগ উঠেছে।ওই ঘটনায় বুয়েট ছাত্রলীগের সাধারণ সম্পাদক মেহেদী হাসান রাসেলসহ ১০ জনকে গ্রেপ্তার করেছে পুলিশ। তারাসহ মোট ১৯ জনের নামে চকবাজার থানায় মামলা করেছেন আবরারের বাবা।রিজভী বলেন, আবরার ফাহাদকে মারার সময়ে অমিত সাহা উপস্থিত ছিল, সে মারামারিতে অংশ নেয়। মৃত্যু নিশ্চিত হওয়ার পর অন্যরা আবরারের লাশ নিয়ে গেলেও অমিত তার রুমেই ছিল।“অথচ সেই অমিত সাহার বিরুদ্ধে কোনো ব্যবস্থা নেওয়া হয়নি, এজহারেও তার নাম নেই, তাকে বহিষ্কারও করেনি ছাত্রলীগ। বরং তাকে বাঁচাতে বুয়েট প্রশাসন ও বির্তকিত পুলিশ কর্মকর্তারা ব্যতিব্যস্ত হয়ে পড়েছেন।”ওই কক্ষের ভেতরে আবরারের ওপর নির্যাতনের খবর পেয়েও পুলিশ কোনো ব্যবস্থা নেয়নি বলে অভিযোগ করেন তিনি।বিএনপির জ্যেষ্ঠ যুগ্ম সম্পাদক বলেন, “গোটা দেশটাকে এখন একটা টর্চার সেলে পরিণত করেছে। বিশ্ববিদ্যালয়ের হলগুলো এখন কন্সেট্রেশন ক্যাম্প। ছাত্র-যুবক-অবাল-বৃদ্ধ-বনিতা সবাই এখন লীগের টর্চারের সেলের নির্মম শিকার।”যুবলীগের ঢাকা মহানগর দক্ষিণের সাংগঠনিক সম্পাদক খালেদ মাহমুদ ভুঁইয়া ও সভাপতি ইসমাইল হোসেন চৌধুরী সম্রাটের কার্যালয়ে ‘টর্চার সেল’ পাওয়া গেছে বলে মন্তব্য করেন রিজভী।তিনি বলেন, অমিত সাহার কক্ষটিও একটি টর্চার সেল। এদিকে চলছে গুম-খুন-অপহরণ আর বিচারবর্হিভূত হত্যাকান্ড, আরেক দিকে রয়েছে ছাত্রলীগ-যুবলীগের টর্চার সেল। এই টর্চার সেলগুলোই ২০১৮ সালের ২৯ ডিসেম্বর দিবাগত রাতের গর্ভে জন্ম নেওয়া বর্তমান সরকারের শক্তির উৎস।রিজভী বলেন, “আবরারের স্ট্যাটাসের পেছনে কারণ ছিল- দেশবিরোধী চুক্তির বিরোধিতা ও সত্য ইতিহাস তুলে ধরা। আমরা যতটুকু পড়েছি, সেখানে সেটিই দেখিছি।” আবরার ফাহাদকে এই সময়ের শ্রেষ্ঠ দেশপ্রেমিক হিসেবে অভিহিত করে রিজভী বলেন, ‘মৃত্যুঞ্জয়ী আবরার ফাহাদ দেশের জন্য জীবন দিয়ে মৃত্যুকে জয় করেছে। এদেশের স্বাধীনতা-সার্বভৌমত্ব রক্ষার যুদ্ধের প্রধান প্রেরণা হয়ে থাকবে আবরার ফাহাদ। সে আমাদের প্রাণের পতাকা।” সংবাদ সম্মেলনে ভারতের এলপিজি গ্যাস রপ্তানির চুক্তি নিয়ে পররাষ্ট্রমন্ত্রী একে আব্দুল মোমেনের ব্যাখ্যার সমালোচনা করে রিজভী বলেন, ভারত নিজেই তো গ্যাস এনে প্রক্রিয়াজাত করতে পারে। “প্রধানমন্ত্রীকে বলবো, জাতীয় স্বার্থবিরোধী চুক্তির প্রতিবাদ করতে গিয়ে লাশ হতে হলো আবরার ফাহাদকে। চুক্তি বাতিল করে প্রমাণ দিন- আপনি আবরারের পক্ষে, ভারতের আবদারের পক্ষে নন।” নয়া পল্টনে দলের কেন্দ্রীয় কার্যালয়ে সংবাদ সম্মেলনে বিএনপি চেয়ারপারসনের উপদেষ্টা কাউন্সিলের সদস্য কবীর মুরাদ, আবুল খায়ের ভুঁইয়া, কেন্দ্রীয় নেতা আবদুস সালাম আজাদ, মুনির হোসেন, মোস্তাক মিয়া, আবদুল আউয়াল খান, সেলিমুজ্জামান সেলিম এসময় উপস্থিত ছিলেন।

ঝিনাইদহে বিশ্ব বসতি দিবস পালিত

ঝিনাইদহ প্রতিনিধি ॥ ‘বর্জ্য হোক সম্পদ, পরিচ্ছন্ন জনপদ’ এ শ্লোগানকে সামনে রেখে ঝিনাইদহে বিশ্ব বসতি দিবস পালিত হয়েছে। ঝিনাইদহ পৌরসভার আয়োজন নগর ভবনের সামনে থেকে এ উপলক্ষে একটি র‌্যালি বের করা হয়। র‌্যালিটি শহরের বিভিন্ন সড়ক ঘুরে একই স্থানে গিয়ে শেষ হয়। পরে পৌরসভা চত্বরে আলোচনা সভার আয়োজন করা হয়। এসময় ঝিনাইদহ পৌরসভার মেয়র সাইদুল করিম মিন্টু, সচিব মোস্তাক আহমেদ, বস্তি উন্নয়ন কর্মকর্তা বদর উদ্দিন, ব্রাক প্রতিনিধি একরামুল হকসহ অন্যান্যরা বক্তব্য রাখেন। বক্তারা, মানববর্জ্যরে সঠিক ব্যবস্থাপনার মাধ্যমে শহরকে পরিচ্ছন্ন রেখে সুন্দর পরিবেশ গড়ে তোলার জন্য সকলের প্রতি আহ্বান জানান।

সরকার শিশুদের জন্য উন্নত জীবন চায় – প্রধানমন্ত্রী

ঢাকা অফিস ॥ প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা বলেছেন, তাঁর সরকারের লক্ষ্য হচ্ছে শিশুদের জন্য মাদক, জঙ্গিবাদ ও সন্ত্রাসবাদের থাবা থেকে মুক্ত উন্নত জীবন নিশ্চিত করা।বিশ্ব শিশু দিবস এবং শিশু অধিকার সপ্তাহ উপলক্ষে আয়োজিত এক অনুষ্ঠানে প্রধানমন্ত্রী একথা বলেন।বাংলাদেশ শিশু একাডেমিতে গতকাল বুধবার আয়োজিত এক অনুষ্ঠানে তিনি বলেন, ‘আমাদের লক্ষ্য হচ্ছে জঙ্গিবাদ, সন্ত্রাসবাদ, মাদক ও দুর্নীতির বিরূপ প্রভাব থেকে মুক্ত করে আমাদের শিশুদের একটি সুন্দর ও উন্নত জীবন নিশ্চিত করা।’প্রধানমন্ত্রী বলেন, সরকার বাংলাদেশকে একটি উন্নত ও সমৃদ্ধ দেশে পরিণত করবে যাতে আজকের শিশুরা সামনের দিনগুলোতে একটি সমৃদ্ধ ভবিষ্যৎ লাভ করে। ‘আমরা এই লক্ষ্য অর্জনেই আমরা কাজ করে যাচ্ছি।’ শিশুদের উন্নত জীবনের জন্য বঙ্গবন্ধুর নেয়া পদক্ষেপ তুলে ধরে প্রধানমন্ত্রী বলেন, জাতির পিতা বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমান প্রাথমিক শিক্ষায় শিক্ষার্থী এবং মাধ্যমিক স্তরে মেয়েদের জন্য বিনা বেতনে পড়াশোনার ব্যবস্থা করে দিয়েছেন।তিনি বলেন, শিশু অধিকার রক্ষায় বঙ্গবন্ধু শিশু আইন-১৯৭৪ অনুমোদন করেন।মহিলা ও শিশু বিষয়ক মন্ত্রণালয় আয়োজিত অনুষ্ঠানে এবারের প্রতিপাদ্য হচ্ছে ‘আজকের শিশু আনবে আলো, বিশ্বটাকে রাখবে ভালো।’মহিলা ও শিশু বিষয়ক প্রতিমন্ত্রী ফজিলাতুন নেসা ইন্দিরা অনুষ্ঠানে উপস্থিত ছিলেন। বাংলাদেশ শিশু একাডেমির চেয়ারম্যন লাকী ইনাম এবং ইউনিসেফের ডেপুটি রিপ্রেজেন্টেটিভ ভেরা মেনডোনকা বিশেষ অতিথির বক্তব্য রাখেন। মন্ত্রণালয়ের সচিব কামরুন নাহার অনুষ্ঠানে স্বাগত বক্তব্য রাখেন। দুই শিশু রওনক জাহান এবং আদিল কিবরিয়া অনুষ্ঠান পরিচালনা এবং অপর দুই শিশু মাহজাবিন এবং আবদুল্লাহ আল হাসান শিশুদের পক্ষে অনুষ্ঠানে বক্তব্য রাখেন। প্রধানমন্ত্রীকে উদ্দেশ্য করে শিশুদের লেখা চিঠির একটি সংকলন এবং একটি শিশুর আঁকা তাঁর পোট্রেট শেখ হাসিনার কাছে হস্তান্তর করা হয়। প্রধানমন্ত্রী সাংস্কৃতিক অনুষ্ঠান প্রত্যক্ষ করেন এবং শিশুদের সঙ্গে ফটোসেশনে অংশ নেন। এরআগে প্রধানমন্ত্রী নতুনভাবে সাজানো কেন্দ্রীয় লাইব্রেরি এবং শিশু একাডেমি চত্বরে বঙ্গবন্ধু কর্ণার পরিদর্শন করেন। সেখানে জাতির পিতা বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমান এবং তাঁর বড় মেয়ে প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার লেখা বই এবং তাঁদের ওপর লেখা বই রাখা হয়েছে। প্রধানমন্ত্রী নতুন করে সাজানো শেখ রাসেল গ্যালারি এবং শেখ রাসেল চিলড্রেন মিউজিয়ামে শেখ রাসেল আর্ট গ্যালারি পরিদর্শন করেন। বিশ্ব শিশু দিবস ও শিশু অধিকার সপ্তাহ-২০১৯ উপলক্ষে শিশুদের শুভেচ্ছা জানিয়ে প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা যোগ্য নাগরিক হিসেবে নিজেদের গড়ে তোলার জন্য তাদের প্রতি আহ্বান জানিয়ে বলেন, শিশুরাই দেশের ভবিষ্যৎ নাগরিক। তিনি বলেন, শিশুরাই জাতিকে নেতৃত্ব দেবে। তাই, ভালবাসা, সহানুভূতি ও সুশিক্ষার মাধ্যমে নিজেদের গড়ে তোলাটা জরুরি, যাতে করে শিশুরা ভবিষ্যতে বিশ্বে ইতিবাচক ভূমিকা রাখতে পারে। শিশুদের সুন্দর জীবনের জন্য তাদের মৌলিক অধিকার নিশ্চিতের প্রয়োজনীয়তার উপর গুরুত্ব আরোপ করে তিনি বলেন, ‘দেশের পাশাপাশি বিশ্বকে বাসযোগ্য করতে শিশুদের মানবিক গুণাবলির বিকাশ ঘটানো অত্যন্ত জরুরি।’ প্রধানমন্ত্রী শিশুদের স্বাস্থ্য, শিক্ষা, বিনোদন ও কল্যাণে আওয়ামী লীগ সরকারের বিভিন্ন পদক্ষেপ তুলে ধরেন। শেখ হাসিনা আরো বলেন, সরকার জাতীয় শিশুশ্রম বিলোপ নীতি-২০১০, জাতীয় শিশুনীতি-২০১১, ইন্ডিভিজুয়ালস উইথ ডিজেবিলিটিজ-২০১৩, বাল্যবিয়ে প্রতিরোধ আইন-২০১৮ ও বাংলাদেশে শিশু একাডেমি আইন-২০১৮ প্রণয়ন করে। তিনি বলেন, ‘আমরা স্কুল থেকে ঝরেপড়া রোধ, প্রতিবন্ধী ও সুবিধাবঞ্চিত শিশুদের কল্যাণে আর্থিক সহায়তা দিয়ে যাচ্ছি।’ শিশুদের পড়ালেখার পাশাপাশি খেলাধূলারও প্রয়োজনীয়তার উপর গুরুত্ব আরোপ করে প্রধানমন্ত্রী বলেন, ‘আমরা চাই আমাদের শিশুরা জাতির পিতা বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের আদর্শে নিজেদেরকে গড়ে তুলবে।’ এ ব্যাপারে প্রধানমন্ত্রী বলেন, ‘শিশুদের খেলার সুযোগ করে দিতে প্রতিটি উপজেলায় মিনি স্টেডিয়াম নির্মাণ করা হচ্ছে।’ তিনি বলেন, শিশুরা বিদেশের মাটিতে বিভিন্ন ক্রীড়া প্রতিযোগিতায় অংশ নিয়ে অনেক আন্তর্জাতিক পুরস্কার নিয়ে এসেছে। তিনি বলেন, খেলাধূলায় মেয়েরা ছেলেদের চেয়ে ভাল করছে। প্রধানমন্ত্রী বলেন, আওয়ামী লীগ সরকার ক্ষমতায় আসার পর থেকে বাংলাদেশ তার হারানো সম্মান ফিরে পেতে শুরু করেছে। বাংলাদেশ টানা ১১ বছর ধরে এই অর্জন ধরে রেখেছে উল্লেখ করে এই সম্মান ধরে রাখার জন্য তিনি সকলের প্রতি আহ্বান জানান।

 

মিরপুর পৌর কৃষকদলের কমিটি গঠন

বাংলাদেশ জাতীয়তাবাদী কৃষকদলের মিরপুর পৌর শাখা কমিটি গঠন করা হয়েছে। বুধবার কৃষকদলের কুষ্টিয়া জেলা শাখার আহবায়ক এসএম গোলাম কবির মিরপুর উপজেলা বিএনপির সভাপতি আব্দুল হকসহ মিরপুর নেতৃবৃন্দের সুপারিশের পরিপ্রেক্ষিতে এই কমিটি অনুমোদন দেয়। আব্দুল জলিল প্রামানিককে সভাপতি, আজম আলীকে সিনিয়র সহ-সভাপতি, মহিফুল ইসলামকে সাধারণ সম্পাদক, আলম শেখকে সিনিয়র যুগ্ম-সম্পাদক ও মোঃ মুলায়েম খানকে সাংগঠনিক সম্পাদক করে ৪১ সদস্য বিশিষ্ট বাংলাদেশ জাতীয়তাবাদী কৃষকদলের মিরপুর পৌর শাখার কমিটি গঠন করা হয়েছে। বুধবার বিকালে জেলা বিএনপির কার্যালয়ে কমিটি গঠনকল্পে এক আলোচনা সভা প্রধান অতিথির বক্তব্য রাখেন বিএনপি চেয়ারপর্সনের উপদেষ্টা কৃষকদল কেন্দ্রীয় কমিটির যুগ্ম-আহবায়ক কুষ্টিয়া জেলা বিএনপির সভাপতি সাবেক এমপি বীরমুক্তিযোদ্ধা সৈয়দ মেহেদী আহমেদ রুমী।

এসময় আরো উপস্থিত ছিলেন মিরপুর উপজেলা বিএনপির সভাপতি আলহাজ আব্দুল হক, মিরপুর পৌর বিএনপির সভাপতি আব্দুর রশিদ, জেলা কৃষকদলের আহবায়ক এসএম গোলাম কবির, উপজেলা বিএনপির দপ্তর সম্পাদক মারফত আফ্রিদী, প্রশিক্ষন সম্পাদক  আছের আলী, মিরপুর উপজেলা কৃষকদলের সভাপতি আনছার আলী, সাধারণ সম্পাদক আকরাম আলী, সাংগঠনিক সম্পাদক সেকেন্দার আলী, উপজেলা যুবদলের সভাপতি আজাদুর রহমান, শহর কৃষকদলের সভাপতি বাবলা আমিন চৌধুরী, সদর থানা কৃষকদলের সাধারণ সম্পাদক মোকাররম হোসেন, কৃষক নেতা শরীফুল ইসলাম সবুজ, মালিহাদ ইউপি যুবদলের সাধারণ সম্পাদক জহুরুল ইসলাম। নব গঠিত কমিটির অন্য সদস্যরা হলো সহ-সভাপতি সিদ্দিক আলী, যুগ্ম সাধারণ সম্পাদক মহাসন আলী, সহ-সাংগঠনিক সম্পাদক ডালিম শেখ, আমিরুল শেখ, প্রচার সম্পাদক আব্দুস সালাম, সহ-প্রচার সম্পাদক আলতাফ হোসেন মালিথা, দপ্তর সম্পাদক খাদিমুল ইসলাম, সদস্য আব্দুস সাত্তার, আব্দুল কুদ্দুস খান, জাহাংগীর হোসেন, আব্দুর রহিম, উজায়েস বিশ^াস, জামিরুল ইসলাম, রায়হান আলী, আরিফ শেখ. আজিজুল হক মন্ডল, জহরুল ইসলাম, কামাল হোসেন মন্ডল, আশরাফুল ইসলাম শেখ, কাফিল উদ্দিন, আশরাফুল, তালেব মোল্লা, শাজাহান আলী, ইউনুচ আলী, আব্দুল বারী, মুসা আহম্মেদ, কামরুল ইসলাম, আব্দুল কুদ্দুস, হামিদুল ইসলাম, আকরাম আলী মুন্সি, মজিবর রহমান, রমজান আলী, রায়হান আলী, ইমরান হোসেন, কবির উদ্দিন, বাবলু শেখ। সংবাদ বিজ্ঞপ্তি

 

এটা আমাদের ‘সম্মিলিত ব্যর্থতা’ ঃ রোহিঙ্গা নিয়ে জাতিসংঘ

ঢাকা অফিস ॥ দুই বছরে রোহিঙ্গা সংকট নিরসনে প্রয়োজনীয় পদক্ষেপ নিতে মিয়ানমারকে রাজি করাতে না পারাকে সবার ‘সম্মিলিত ব্যর্থতা’ হিসেবে বর্ণনা করলেন বাংলাদেশে জাতিসংঘের আবাসিক প্রতিনিধি মিয়া সেপ্পো।গতকাল বুধবার ঢাকায় ‘ডিক্যাব টক’-এ তিনি বলেন, “আমার মতে এটা স্বীকার করতে হবে যে, মিয়ানমারকে উদ্বুদ্ধ করার ক্ষেত্রে আমাদের সম্মিলিত ব্যর্থতা রয়েছে। এই ব্যর্থতা শুধু জাতিসংঘের নয়, আরও অনেকের।”ঢাকার কূটনৈতিক প্রতিবেদকদের সংগঠন ডিপ্লোমেটিক করেসপনডেন্টস অ্যাসোসিয়েশন, বাংলাদেশ (ডিক্যাব) আয়োজিত এই অনুষ্ঠানে জাতিসংঘের প্রতিনিধির সঙ্গে মঞ্চে ছিলেন সংগঠনের সভাপতি রাহীদ এজাজ ও সাধারণ সম্পাদক নুরুল ইসলাম হাসিব।  বক্তব্যে বাংলাদেশে জাতিসংঘ পরিচালিত সব ধরনের কার্যক্রম নিয়ে কথা বলেন মিয়া সেপ্পো। তবে প্রশ্নোত্তরে গুরুত্ব পায় রোহিঙ্গা প্রসঙ্গ। বর্তমানে ১১ লাখের বেশি রোহিঙ্গাকে আশ্রয় দিচ্ছে বাংলাদেশ। এদের সাড়ে সাত লাখই এসেছে ২০১৭ সালের অগাস্টে রাখাইনে মিয়ানমার সেনাবাহিনীর দমন অভিযানের মুখে। বাস্তুচ্যুত রোহিঙ্গাদের নিজ ভূমিতে ফেরাতে উদ্যোগ নেওয়া হলেও মিয়ানমার সরকার এখনও রাখাইনে তাদের জন্য নিরাপদ পরিবেশ তৈরি না করায় তা সফল হয়নি। নিরাপদে ও মর্যাদার সঙ্গে মিয়ানমারে ফিরতে চায় তারা। রোহিঙ্গা সংকটকে বৈশ্বিক চ্যালেঞ্জ হিসেবে বর্ণনা করে এর সমাধানে জটিলতার দিকগুলো তুলে ধরেন মিয়া সেপ্পো। সংকটের মূল কারণ মিয়ানমারে রয়েছে মন্তব্য করে তিনি বলেন, “এর সমাধান আসবে বিভিন্ন দিক থেকে নানা উদ্যোগের মাধ্যমে।” মিয়া সেপ্পো বলেন, এই সংকটের দিকে অব্যাহত নজর ধরে রাখা এবং এটা নিয়ে আলোচনায় সদস্য দেশগুলোকে এক জায়গায় আনতে সক্ষম হয়েছে জাতিসংঘ। এখন সংকট নিরসনের পথ হিসেবে দুটি দিকের ওপর গুরুত্ব দেন জাতিসংঘের আবাসিক প্রতিনিধি। “প্রথমত, আমাদের সামনে যেসব প্রশ্ন আছে সেগুলোর সমাধান কোনো একটি বিষয় দিয়ে হবে না। আমরা একসঙ্গে অনেক চ্যালেঞ্জ মোকাবেলা করছি, সেগুলো জটিল ও পরস্পর সম্পর্কিত। অবশ্যই, প্রধান লক্ষ্যগুলোর একটি নিরাপত্তা ও মর্যাদার সঙ্গে তাদের স্বেচ্ছায় প্রত্যাবাসনের অনুকূল পরিবেশ তৈরি।” তার আগ পর্যন্ত শরণার্থীদের আশ্রয় দেওয়ার কারণে বাংলাদেশের স্থানীয় জনগোষ্ঠীর ওপর যে প্রভাব পড়ছে সেদিকে নজর দেওয়ার পাশাপাশি এই রোহিঙ্গাদের দিকে মনোযোগ দেওয়ার কথা বলেন তিনি। তার মতে, দ্বিতীয় বিষয় হচ্ছে সমাধানের ‘স্থায়িত্ব’। স্থায়ী সমাধানের জন্য প্রয়োজনীয় সব কিছু ঠিকমতো হতে হবে। “আমরা আজকে যে কাজগুলো করছি সেগুলো যেন আগামীকালের সম্ভাব্য পদক্ষেপের মঞ্চ তৈরি করে, তার জন্য সময় লাগবে এবং সযতœ বিবেচনা থাকতে হবে। সীমান্তের উভয় পাশেই জাতিসংঘের কার্যক্রমের ক্ষেত্রে এ বিষয়টি সত্য। “রাখাইন প্রদেশে অবস্থার উন্নয়নে কীভাবে সহযোগিতা করতে পারি তার উপায় বের করতে হবে এবং তা রোহিঙ্গা শিশু, নারী ও পুরুষকে, তারা যেখানেই থাক না কেন, তাদের বাকি জীবনের জন্য প্রস্তুত করতে যা কিছু করতে পারি সেই প্রচেষ্টার মধ্যেই করতে হবে।”

দৌলতপুরে বিশ শিশু দিবস ও জাতীয় কন্যা শিশু দিবস পালন

দৌলতপুর প্রতিনিধি ॥ ‘আজকের শিশু আনবে আলো, বিশ^টাকে রাখবে ভাল’ এবং ‘কন্যা শিশুর অগ্রযাত্রা, দেশের জন্য নতুন মাত্রা’ পৃথক এই প্রতিপাদ্য নিয়ে কুষ্টিয়ার দৌলতপুরে বিশ^ শিশু দিবস ও জাতীয় কন্যা শিশু দিবস পালিত হয়েছে। এ উপলক্ষ্যে গতকাল বুধবার সকালে র‌্যালি ও আলোচনা সভা অনুষ্ঠিত হয়। দৌলতপুর উপজেলা নির্বাহী অফিসার শারমিন আক্তারের নেতৃত্বে একটি র‌্যালি উপজেলা পরিষদ চত্বরের বিভিন্ন সড়ক প্রদক্ষিণ করে। পরে উপজেলা পরিষদ মিলনায়তনে আলোচনা সভা অনুষ্ঠিত হয়। দৌলতপুর উপজেলা নির্বাহী অফিসার শারমিন আক্তারের সভপতিত্বে আলোচনা সভায় বক্তব্য রাখেন দৌলতপুর মহিলা বিষয়ক কর্মকর্তা রুবি আক্তার, দৌলতপুর সমাজসেবা অফিসার মো. ছানোয়ার আলীসহ অন্যান্য কর্মকর্তা। উপজেলা প্রশাসন ও দৌলতপুর উপজেলা মহিলা বিষয়ক কর্মকর্তার আয়োজনে দিবসটি পালন করা হয়।

গাংনীতে ট্রাকের ধাক্কায় গৃহবধূ নিহত

গাংনী প্রতিনিধি  ॥ মেহেরপুরের গাংনীতে ট্রাকের ধাক্কায় রাণী খাতুন (২৫) নামের এক গৃহবধূ নিহত হয়েছেন। সে মেহেরপুর সদর উপজেলার গোপালপুর গ্রামের নাহিদুজ্জামানের স্ত্রী। গতকাল বুধবার দিবাগত সন্ধ্যা সাড়ে ৬টার দিকে মেহেরপুর-কুষ্টিয়া সড়কের গাংনীর পোড়াপাড়া নামক স্থানে ট্রাকের ধাক্কায় নিহতের ঘটনা ঘটে। স্থানীয়রা জানান- রাণী খাতুন তার শ্বশুরের মোটরসাইকেল চড়ে গাংনী উপজেলা শহর থেকে বাড়ি ফিরছিলেন। তারা গাংনী উপজেলার গাঁড়াডোব গ্রামের পোড়াপাড়া বাজারের অদূরে পৌঁছালে বিপরীত দিক থেকে আসা একটি ট্রাক মোটর সাইকেলকে ধাক্কায় দেয়। ওই ধাক্কায় রাণী ও তার শ্বশুর মোটরসাইকেল থেকে ছিটকে পড়েন। এসময় রাণী রক্তাক্ত জখম হয়। পথচারীরা তাকে উদ্ধার করে গাংনী উপজেলা স্বাস্থ্যকম্পপ্লেক্সে নিলে কর্তব্যরত ডাক্তার মৃত ঘোষণা করেন। গাংনী থানার ওসি ওবাইদুর রহমান জানান, লাশ থানা হেফাজতে নেয়া হয়েছে। ট্রাকটি আটকের চেষ্টা চলছে।

 

আব্দালপুর ইউনিয়ন আ’লীগের সভাপতি আরব আলীর বিরুদ্ধে নানা অভিযোগ

কুষ্টিয়া সদর উপজেলার বিষ্ণুদিয়া বাগপাড়ায় গোরস্থান উন্নয়নসহ বিভিন্ন প্রকল্পের কয়েক লাখ টাকা আত্মসাৎ

নিজ সংবাদ ॥ কুষ্টিয়া সদর উপজেলার আব্দালপুর ইউনিয়নের বিষ্ণুদিয়া বাগপাড়া গোরস্থানসহ আরো কয়েকটি উন্নয়ন কাজের নামে আওয়ামী লীগ নেতা আরব আলীর বিরুদ্ধে কয়েক লক্ষ টাকা আত্মসাতের অভিযোগ উঠেছে। গোরস্থান, মসজিদ ও মন্দির কমিটির লোকজনকে না জানিয়ে অর্থ তুলে নেয়া হয়েছে সদর উপজেলা প্রকল্প বাস্তবায়ন অফিস থেকে। এদিকে মসজিদের অর্থ আত্মসাতের খবরে এলাকার ধর্মপ্রাণ মুসুল¬ী ও সাধারন মানুষ ক্ষোভ প্রকাশ করেছেন। অবিলম্বে তারা দোষীদের শাস্তি দাবি করেছেন।

জানা গেছে, ২০১৮-১৯ অর্থ বছরে তিন প্রকল্পের উন্নয়নের জন্য সদর উপজেলার বিষ্ণুদিয়া বাগপাড়া জামে মসজিদের উন্নয়নের জন্য সরকার থেকে প্রায় দেড় লক্ষ টাকা বরাদ্দ দেয়া হয়। এর মধ্যে বাগপাড়া মসজিদ ৪৩ হাজার ৫০০ টাকা, গোরস্থান সংস্কারে ৪৩ হাজার ৫০০ টাকা ও মন্দির উন্নয়নে সমপরিমান টাকা বরাদ্দ দেয়া হয়।

মসিজদ, মন্দির ও গোরস্থান কমিটি ও স্থাণীয় মুসুল¬ীদের না জানিয়ে উপজেলা প্রকল্প বাস্তবায়ন অফিসে ভুয়া কমিটি জমা দিয়ে ইউনিয়ন আওয়ামী লীগের সভাপতি আরব আলী সব অর্থ তুলে নিয়েছেন। এ অর্থ প্রতিষ্ঠানের উন্নয়নের জন্য ব্যয় না করে আত্মসাৎ করেছেন বলে কমিটির পক্ষ থেকে অভিযোগ করা হয়েছে। আরব আলী ক্ষমতাসীন দলের নেতা হওয়ায় কেউ ভয়ে মুখ খুলতে পারছেন না।

মসজিদ কমিটির কয়েকজন নেতা  জানান, সরকারি অর্থ বরাদ্দ হয়েছে, এবং তা উত্তোলনও করা হয়েছে বলে আমরা খবর পেয়েছি। তবে সেই অর্থ মসজিদ কমিটি পাইনি। এ অর্থ ইউনিয়ন আওয়ামী লীগের একজন নেতার কাছে রয়েছে। তবে আওয়ামী লীগের নেতা হওয়ায় ভয়ে কেউ কিছু বলতে পারছে না। কয়েকবার টাকা চাইলেও তিনি দেননি।

গোরস্থান ও মন্দির কমিটির নেতারা জানান, কাজের নামে আরব আলী সব অর্থ তুলে নিয়েছেন। টাকা চাইলে তালবাহানা করেন। তাই আমরা টাকা চাওয়া বন্ধ করে দিয়েছি। এর আগে বিভিন্ন প্রতিষ্ঠানের টাকা তিনি তুলে নেন।

স্থানীয়রা জানান, শুধু এই প্রতিষ্ঠানের অর্থ নয় ইউনিয়ন আওয়ামী লীগের সভাপতি আরব আলী প্রতিষ্ঠানের উন্নয়নের কথা বলে এমপির কাছ থেকে অনুদান নিয়ে এসে আত্মসাৎ করেন। মসজিদ, মন্দির ও গোরস্থানের টাকাও তুলে তিনি নিজের কাছে রাখেন। স্থানীয় একটি মন্দিরের টাকাও তিনি মেরে দিয়েছেন।

উপজেলা প্রকল্প বাস্তবায়ন কর্মকর্তা সাইদুর রহমান বলেন, প্রতিষ্ঠানের উন্নয়নের নামে কেউ অর্থ নয়ছয় করলে ব্যবস্থা নেয়া হবে। ভুয়া কমিটি দিয়ে যদি কেউ টাকা তুলে প্রয়োজনে তদন্ত করে দেখা হবে।

উপজেলা নির্বাহী অফিসার জুবায়ের হোসেন চৌধুরী বলেন, বিষয়টি গুরুতর। অভিযোগ পেলে কঠোর ব্যবস্থা নেয়া হবে।’

অভিযোগের বিষয়ে ইউনিয়ন আওয়ামী লীগের সভাপতি আরব আলীর সাথে ফোনে কথা হলে বলেন,‘ কোন টাকা আত্মসাৎ করিনি। কাজ হয়েছে। এলাকার প্রতিপক্ষ আমার বিরুদ্ধে এসব অপপ্রচার চালাচ্ছে।’

দৌলতপুরের চিলমারী ইউনিয়নব্যাপী বন্যার্র্তদের মাঝে ত্রাণ সামগ্রী বিতরণ

নিজ সংবাদ ॥ বন্যা কবলিত কুষ্টিয়া জেলার দৌলতপুর উপজেলার চিলমারী ইউনিয়নের ৯টি ওয়ার্ডে বিভিন্ন প্রতিষ্ঠান, ব্যক্তি, সংস্থা ও অসহায় মানুষের মধ্যে ত্রাণ সামগ্রী বিতরণ করা হয়েছে। এফবিসিসিআই’র সদস্য আমিনুল ইসলাম বাচ্চুর পক্ষ থেকে চিলমারী ইউনিয়নব্যাপী ত্রাণ সামগ্রী বিতরণ করা হয়। আদম তমিজি হকের পক্ষ থেকে ইঞ্জিনিয়ার শাকিল খানের সহযোগিতায় ত্রাণ সামগ্রী বিতরণ করা হয়।

হাসনা শহীদ ফাউন্ডেশনের পক্ষ থেকে ত্রাণ সামগ্রী বিতরন করা হয়। এ সময় উপস্থিত ছিলেন ফাউন্ডেশনরে চেয়ারম্যান সাইফুল ইসলাম। ত্রাণ সামগ্রী বিতরনে চিলমারী বাজারের পক্ষ থেকে সহয়তা করেন চিলমারী ইউনিয়ন আওয়ামীলীগের সভাপতির সন্তান সাবেক ছাত্রনেতা মোঃ মাসুদুর রহমান বিপুল ।

সভাপতি রোকনুজ্জামান ॥ সাধারণ সম্পাদক শহিদুল

কালুখালীর মদাপুর ইউপি আওয়ামীলীগের ত্রি-বার্ষিক সম্মেলন অনুষ্ঠিত

ফজলুল হক ॥ গতকাল বুধবার রাজবাড়ীর কালুখালী উপজেলার মদাপুর ইউনিয়ন আওয়ামীলীগের ত্রি-বার্ষিক সম্মেলন অনুষ্ঠিত হয়েছে। গোপালপুর উচ্চ বিদ্যালয় মাঠ প্রাঙ্গণে এ উপলক্ষ্যে দিনব্যাপী সম্মেলনে প্রধান অতিথি হিসেবে বক্তব্য রাখেন রাজবাড়ী-২ আসনের সংসদ সদস্য বীর মুক্তিযোদ্ধা মোঃ জিল্লুল হাকিম। তিনি তার বক্তব্যে আগামী দিনে তৃণমূল পর্যায়ে আওয়ামীলীগকে শক্তিশালী করতে নতুন কমিটির নেতাকর্মীদের দিকনির্দেশনা প্রদান করেন। অনুষ্ঠানে প্রথম অধিবেশনে ইউনিয়ন আওয়ামীলীগের সহ-সভাপতি এবিএম রোকনুজ্জামানের সভাপতিত্বে বিশেষ অতিথি হিসেবে বক্তব্য রাখেন জেলা আওয়ামীলীগের সাংগঠনিক সম্পাদক মোঃ আজিজুর রহমান, উপজেলা পরিষদ চেয়ারম্যান আলিউজ্জামান চৌধুরী (টিটো), উপজেলা আওয়ামীলীগের ভারপ্রাপ্ত সভাপতি মুক্তিযোদ্ধা আঃ খালেক মাস্টার, রাজবাড়ী প্রেসক্লাবের সভাপতি খান মোঃ জহিরুল হক, জেলা পরিষদ সদস্য ও উপজেলা আওয়ামীলীগের প্রচার  ও প্রকাশনা সম্পাদক মিজানুর রহমান মজনু ও মাওলানা সাদেকুর রহমান প্রমূখ বক্তব্য রাখেন। অনুষ্ঠানে দ্বিতীয় অধিবেশনে উপজেলা আওয়ামীলীগের ভারপ্রাপ্ত সভাপতি আঃ খালেকের সভাপতিত্বে সম্মেলনের কার্যক্রম শুরু হয়। স্বতস্ফুর্ত উপস্থিতিতে প্রস্তাব সমর্থনের মাধ্যমে এবিএম রোকনুজ্জামানকে সভাপতি ও সাবেক সাধারণ সম্পাদক মোঃ শহিদুল ইসলাম নির্বাচিত হয়। পরে ইউনিয়ন আওয়ামীলীগের নেতৃবৃন্দ ও গান্ধিমারা যুব ও ক্রীড়া সংঘের সদস্যবৃন্দ নির্বাচিত সভাপতি ও সাধারণ সম্পাদককে ফুল দিয়ে বরণ করেন।

রূপপুর প্রকল্পে চাকরি দেয়ার নামে প্রতারণা!

ভেড়ামারা রিপোর্টাস ক্লাবের প্রচার সম্পাদক মোহনসহ গ্রেফতার-২

ভেড়ামারা অফিস ॥ পাবনার রূপপুর পারমাণবিক বিদ্যুৎ প্রকল্পে চাকরির প্রলোভন দেখিয়ে বেশ কয়েকজনের কাছ থেকে টাকা হাতিয়ে নেয়ার অভিযোগে দুজনকে গ্রেফতার করা হয়েছে। রোববার দুপুরে ঈশ্বরদী উপজেলার পাকশী ইউনিয়নে অভিযান চালিয়ে প্রতারক চক্রের দুই সদস্যকে গ্রেফতার করে পুলিশ। গ্রেফতাররা হলেন- কুষ্টিয়ার ভেড়ামারার চাঁদগ্রাম ইউনিয়নের হিড়িমদিয়া গ্রামের তকছেদ আলীর ছেলে,  ভেড়ামারা রিপোর্টাস ক্লাবের প্রচার সম্পাদক মোহন (৩০) ও চাঁদগ্রামের রতন  মোল্লার ছেলে লোকমান হোসেন (৩৫)। গ্রেফতারকালে তাদের কাছ  থেকে বিভিন্ন প্রতিষ্ঠানের ভুয়া নিয়োগপত্র, চাকরিপ্রার্থীদের সিভি, বিভিন্ন প্রতিষ্ঠানের নিয়োগ বিজ্ঞপ্তি ও দুটি ভুয়া সাংবাদিক পরিচয়পত্র জব্দ করা হয়। ঈশ্বরদী থানার পরিদর্শক (তদন্ত) অরবিন্দ সরকার বলেন, গ্রেফতার হওয়া এই চক্রের সদস্যরা সংঘবদ্ধভাবে সরকারি চাকরি দেয়ার নামে প্রতারণা করে আসছিল। গত কয়েক মাসে প্রায় ১৬০ জনের কাছ থেকে হাতিয়ে নিয়েছে হাজার হাজার টাকা। টার্গেট ব্যক্তিকে প্রতারণার ফাঁদে  ফেলার জন্য এই চক্রের সদস্যরা দুটি গ্র“পে ভাগ হয়ে কাজ করতেন। এই চক্রের কাছে প্রতারিত হয়ে কয়েকজন চাকরিপ্রত্যাশী বেকার যুবক থানা পুলিশে অভিযোগ করেন। সেই অভিযোগের অনুসন্ধান করতে এই চক্রের সন্ধান পায় পুলিশ। তিনি আরও বলেন, প্রাথমিক পর্যায়ে কাজ করে তাদের প্রমোটর টিম, যাদের দায়িত্ব চাকরি প্রার্থী সংগ্রহ করা। এই গ্র“পের সদস্যরা মাঠপর্যায়ে কাজ করে। তাদের লক্ষ্য থাকে বেকারদের টার্গেট করে রূপপুর পারমাণবিক বিদ্যুৎ প্রকল্পে চাকরির প্রলোভন দেখানো। তারা বিভিন্ন চাকরি দেয়ার কথা বলে প্রার্থীদের কাছ থেকে সিভি, শিক্ষাগত  যোগ্যতার ফটোকপি, জন্মসনদ, নাগরিকত্বের সনদ ও পাসপোর্ট সাইজের ছবি সংগ্রহ করে। ঈশ্বরদী থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) বাহাউদ্দীন ফারুকী বলেন, এভাবে চক্রের সদস্যরা দীর্ঘদিন ধরে অনেক মানুষের কাছ  থেকে টাকা হাতিয়ে নিয়ে সর্বশান্ত করেছে। তাদের বিরুদ্ধে আইনানুগ ব্যবস্থা প্রক্রিয়াধীন বলেও জানান ওসি।

দৌলতপুর সীমান্তে মাদক উদ্ধার

বিজিবি’র অভিযানে ৭টি স্বর্নের বার স্বর্ন পাচারকারী আটক 

বিশেষ প্রতিনিধি ॥ কুষ্টিয়ার মিরপুরে জেআর পরিবহনে তল্লাশী করে রিপন (২৯) নামে এক স্বর্ন পাচারকারী যুবককে ৭টি স্বর্নের বার ও নগদ টাকাসহ আটক করেছে বিজিবি। উপজেলার আমলা সদরপুর ইউনিয়নের কুষ্টিয়া-মেহেরপুর সড়কের কাতলামারী এলাকায় যাত্রীবাহী ঢাকা কোচ থেকে স্বর্ণের বারসহ ওই যুবককে আটক করা হয়। আটক রিপন টাঙ্গাইল জেলার মির্জাপুর উপজেলার বদিরপাড়া এলাকার খোরশেদ আলমের ছেলে। গতকাল বুধবার বিকেল সোয়া ৩টার দিকে ৪৭ বর্ডার গার্ড বাংলাদেশ (বিজিবি) ব্যাটালিয়ন সংবাদ বিজ্ঞপ্তির মাধ্যমে এই তথ্য নিশ্চিত করেছেন। বিজ্ঞপ্তিতে উল্লেখ করা হয়েছে বুধবার ভোররাত ৫টার দিকে ঢাকা থেকে ছেড়ে আসা যাত্রীবাহী কোচ জেআর পরিবহনে অভিযান চালিয়ে রিপনকে আটক শেষে তার দেহ তল্লাশী করে ৭টি স্বর্নের বার উদ্ধার করা হয় যার ওজন ৭৮৩.০২ গ্রাম এবং নগদ ২৬৮১ টাকা। বিজ্ঞপ্তিতে আরো জানানো হয়, ঢাকা থেকে ছেড়ে আসা জেআর পরিবহন করে মেহেরপুরে স্বর্ন পাচার করা হচ্ছে। এমন গোপন সংবাদ পেয়ে ব্যাটালিয়ন সদর ও প্রাগপুর বিওপির যৌথ টহলের সমন্বয়ে নাঃ সুবেদার সুবোধ কুমার পালের নেতৃত্বে বিজিবি’র টহল দল ওই পরিবহনে তল্লাশী অভিযান চালিয়ে রিপন নামে ওই যুবককে আটক করা হয়। পরে তার দেহ তল্লাশি করে নগদ টাকা ও ৭টি স্বর্নের বার উদ্ধার করা হয়েছে। এ ঘটনায় মিরপুর থানায় মামলা হয়েছে। অপরদিকে গতকাল সকাল সাড়ে ৬টার দিকে  দৌলতপুর উপজেলার আশ্রয়ন বিওপি’র টহল দল মুন্সিগঞ্জ নদীরপাড় নামক স্থানে অভিযান চালিয়ে ৬৭ বোতল বেঙ্গল টাইগার মদ উদ্ধার করেছে। একইদিন বেলা সাড়ে ১১টার দিকে চরচিলমারী বিওপি’র টহল দল ডিগ্রিরচর নামক স্থানে অভিযান চালিয়ে ১০০ প্যাকেট ভারতীয় পাতার বিড়ি উদ্ধার করেছে। এছাড়াও মঙ্গলবার রাত পৌনে ১০টার দিকে মহিষকুন্ডি বিওপি’র টহল দল মহিষকুন্ডি বাজারে অভিযান চালিয়ে ৪৭ বোতল ফেনসিডিল উদ্ধার করেছে। তবে উদ্ধার হওয়া মাদকের সাথে জড়িত কেউ আটক হয়নি বলে বিজিবি সূত্র জানিয়েছে।

জিকে শামীমের কোম্পানির অধীনে বন্ধ প্রকল্পে ফের টেন্ডার হবে – গণপূর্তমন্ত্রী

ঢাকা অফিস ॥ র‌্যাবের অভিযানে গ্রেপ্তার হয়ে মুদ্রা পাচার আইনসহ একাধিক মামলায় কারাবন্দী যুবলীগ নেতা হিসেবে আলোচিত জিকে শামীমের ঠিকাদারি কোম্পানির অধীনে বন্ধ হওয়া প্রকল্পগুলোতে আবার দরপত্র চাওয়া হবে বলে গৃহায়ন ও গণপূর্তমন্ত্রী শ ম রেজাউল করিম জানিয়েছেন।গতকাল বুধবার সকালে নিজ কার্যালয়ে গণপূর্ত অধিদপ্তর সংক্রান্ত প্রাতিষ্ঠানিক টিমের অনুসন্ধানে পাওয়া সুপারিশমালা হস্তান্তর শেষে সাংবাদিকদের প্রশ্নের জবাবে তিনি একথা বলেন।গণপূর্তমন্ত্রী বলেন, “জিকে শামীমের অনেকগুলো প্রকল্প এখন চলমান। সে প্রকল্পের কিছু কিছু জায়গায় তারা কাজ বন্ধ করে দিয়েছে- এই অজুহাতে যে, তাদের অ্যাকাউন্ট ফ্রিজ করা হয়েছে, তাদের টাকা পয়সা নাই, কাজ করতে পারছেন না।“আমরা তাদেরকে নোটিস দেব। যদি তারা এগিয়ে না আসেন। অসমাপ্ত কাজ পরিমাপ করে তার জন্য আবারটেন্ডার দেওয়া হবে।এর মধ্যে বুঝিয়ে দেওয়া কাজগুলোর মান পরীক্ষা করে যদি দেখা যায়, তা টেন্ডারের শর্ত পূরণ করছে না তাহলে সেসব সব কাজ গ্রহণ করা হবে না বলে জানান তিনি।“যে কাজগুলি নিয়ে অনেক বেশি আলাপ- আলোচনা হয়েছে, প্রাসঙ্গিকভাবে বলতে পারি যে, এই কাজগুলি আমি মন্ত্রী হিসেবে দায়িত্ব গ্রহণের পূর্বের কাজ। এটা ধারাবাহিকতা, কাজ বুঝে নেব। কোনো কাজ সঠিক না হলে কাজ আদায় করে নেব।“গণপূর্তমন্ত্রী জানান, জিকে শামীমের কোম্পানি জিকে বিল্ডার্সের সরকারের ৫৩টি ভবন নির্মাণ প্রকল্পে কাজ করছেন, যার মধ্যে ১৩টিতে তার কোম্পানি এককভাবে কাজ করছে, বাকিগুলো যৌথভাবে করছে।তিনি বলেন, “উনি যে পরিমাণ কাজ করছেন তার চেয়ে বেশি টাকা কোথায়ও নেননি। আবার ধরেন উনি পাঁচ লাখ টাকা অতিরিক্ত নিয়েছেন, উনার অনেক জায়গায় টাকা পাওনা আছে। আমরা অ্যাডজাস্ট করব।”বন্ধ কাজগুলি কবে টেন্ডার দেওয়া হবে জানতে চাইলে মন্ত্রী বলেন, “এতগুলো প্রকল্পতো। আশা করছি, দুই সপ্তাহের মধ্যে সমস্ত প্রকল্পে নোটিস দেব।”জিকে শামীমের অনেকগুলো প্রকল্প নিয়ে প্রশ্ন উঠেছে জানিয়ে মন্ত্রী বলেন, “তাকে (জিকে শামীম) কোনো কাজ দেওয়া হয়নি। তার কোম্পানি ‘ইন ডিউ প্রসেস পার্টিসিপেট’ করেছে। আমাদের দায়িত্ব কাজ যথাযথভাবে তিনি করছেন কিনা সেটা দেখা।“তিনি যদি অতি গোপনে বা আমাদের ‘নলেজের’ বাইরে কাউকে উৎকোচ দিয়ে থাকেন, সেটা কিন্তু আমার ধরার মত অবস্থা নাই।” এধরনের কোনো অভিযোগ এলে তদন্ত করে খতিয়ে দেখা হবে জানিয়ে তিনি বলেন, “সেই বিষয়গুলি অনেকটা যতœশীলতার সঙ্গে পরীক্ষা-নিরীক্ষা শুরু হয়েছে।“এখন কিছু কিছু ব্যাপারে যখন দুদক একটা ইনকোয়ারিতে আছে, আমরা আরেকটা ইনকোয়ারিতে যাব না। একারণে যাব না… আমি নিজে আইনজীবী, আমি বুঝি- ‘ডাবল স্ট্যান্ডার্ড’- দুইটা জায়গা আসা যাবে না।”মন্ত্রী বলেন, “একটা তদন্ত রিপোর্ট আমার কর্মকর্তা আমাকে দিল। যেটা দুদকে রিপোর্টের সঙ্গে মিশছে না। এই ফাঁকে কিন্তু যিনি অভিযুক্ত তিনি পার পেয়ে যাবেন, দুটি রিপোর্টের ফাঁকের সুযোগ নিয়ে।“কাজেই ইনভেস্টিগেশন করার প্রপার অথরিটি কিন্তু পুলিশ এবং দুর্নীতি দমন কমিশন। ক্রিমিনাল অফেন্সের বিষয়ে তারা ইনভেস্টিগেশন করছে। আমরা সহায়তা করব আর ডিপার্টমেন্টের প্রসেসে যেগুলি নেওয়ার মতো ব্যবস্থা আছে, সেটা আমরা গ্রহণ করছি।”

ড. মুহাম্মদ ইউনূসের বিরুদ্ধে গ্রেফতারি পরোয়ানা

ড. মুহাম্মদ ইউনূসের বিরুদ্ধে গ্রেফতারি পরোয়ানা

ঢাকা অফিস ॥ নোবেল বিজয়ী অর্থনীতিবিদ ড. মুহাম্মদ ইউনূসের বিরুদ্ধে গ্রেফতারি পরোয়ানা জারি করেছেন আদালত। তিন মামলায় তার বিরুদ্ধে বুধবার এ গ্রেফতারি পরোয়ানা জারি করেন ঢাকার তৃতীয় শ্রম আদালতের চেয়ারম্যান রহিবুল ইসলাম। নিজের প্রতিষ্ঠিত গ্রামীণ কমিউনিকেশন্স প্রতিষ্ঠানে ট্রেড ইউনিয়ন গঠন করায় চাকরিচ্যুতের অভিযোগে ড. ইউনূসের বিরুদ্ধে মামলাগুলো দায়ের করা হয়। এদিন তিন মামলায় সমনের জবাব দেয়ার জন্য দিন ধার্য ছিল। কিন্তু ড. ইউনূস আদালতে উপস্থিত না হওয়ায় তার বিরুদ্ধে গ্রেফতারি পরোয়ানা জারি করা হয়। মামলার অপর দুই আসামি হলেন প্রতিষ্ঠানের ব্যবস্থাপনা পরিচালক নাজনীন সুলতানা ও উপ-মহাব্যবস্থাপক খন্দকার আবু আবেদীন। ড. ইউনূসের আইনজীবী রাজু আহম্মেদ আদালতকে বলেন, ড. ইউনূস সম্মানিত ব্যক্তি। তিনি ব্যবসার কাজে বিদেশ অবস্থান করছেন। তিনি দেশে আসলে আদালতে উপস্থিত হবেন। মামলার বাদী প্রস্তাবিত গ্রামীণ কমিউনিকেশন্স শ্রমিক কর্মচারী ইউনিয়নের সাধারণ সম্পাদক আব্দুস সালাম বলেন, প্রতিষ্ঠানে ইউনিয়ন গঠন করায় চাকরিচ্যুত করায় আমরা ড. ইউনূসের বিরুদ্ধে মামলা করি। তিনি আজ (বুধবার) আদালতে উপস্থিত না হওয়ায় আদালত তার বিরুদ্ধে গ্রেফতারি পরোয়ানা জারি করেন। অপরদিকে মামলার অপর দুই আসামি গ্রামীণ কমিউনিকেশন্সের ব্যবস্থাপনা পরিচালক নাজনীন সুলতানা ও উপ-মহাব্যবস্থাপক খন্দকার আবু আবেদীন আত্মসমর্পন করে জামিন আবেদন করেন। শুনানি শেষে আদালত তাদের জামিন আবেদন মঞ্জুর করেন। এর আগে গত ৩ জুলাই ঢাকার তৃতীয় শ্রম আদালতে ড. মুহাম্মদ ইউনূসসহ তিন জনের বিরুদ্ধে মামলা করেন গ্রামীণ কমিউনিকেশন্সের সদ্য চাকরিচ্যুত সাবেক তিন কর্মচারীর। আদালত ৮ অক্টোবর তাদের হাজির হওয়ার জন্য সমন জারি করেন।

যুক্তরাষ্ট্রের নিউইয়র্কে, বুয়েটের ছাত্র আবরার ফাহাদ হত্যাকান্ডের প্রতিবাদে সভা ও মানববন্ধন

বিশেষ প্রতিনিধি ॥ বুয়েটের ছাত্র আবরার ফাহাদ হত্যাকান্ডের প্রতিবাদে যুক্তরাষ্ট্রের নিউইয়র্কের জেকশন হাইটস ডাইভার্সিটি প্লাজায় গত ৮ অক্টোবর মঙ্গলবার স্থানীয় সময় সন্ধ্যা ৭টায় কুষ্টিয়া জেলা সমিতি ইউএসএ ইনকের আয়োজিত এক প্রতিবাদ সভা ও মানববন্ধন অনুষ্ঠিত হয়। সমিতির সভাপতি আবু মুসার সভাপতিত্বে ও সাধারণ সম্পাদক মোঃ আসাদুজ্জামানের পরিচালনায় প্রতিবাদ সভা ও মানববন্ধন অনুষ্ঠিত হয়। এ সময় বক্তব্য রাখেন সমিতির সিনিয়র সভাপতি মোঃ রাশেদুল আলম, সাবেক সভাপতি  মোঃ গিয়াস উদ্দিন, সহ-সভাপতি আব্দুল মমিন বিশ্বাস, সহ-সভাপতি কাজী পারভেজ বাবু, কোষাধ্যক্ষ আলমগীর  হোসেন, মহিলা বিষয়ক সম্পাদক আম্বিয়া অন্তরা, ক্রীড়া সম্পাদক আবদুল্লাহ যুবায়ের, সদস্য এম ইসলামসহ অন্যান্য সদস্যবৃন্দ। এছাড়া প্রতিবাদ সমাবেশে উপস্থিত ছিলেন নিউইয়র্কের স্থানীয় কমিউনিটির নেত্রীবৃন্দ। সভায় সকলের বক্তব্য ছিল দ্রুত আইনের আওতায় এনে অপরাধীদের বিচার করা, ভিসি ও প্রভোস্টের অপসারণসহ তারাও এই হত্যার সহিত জড়িত আছে কিনা তদন্ত করে দেখা। বক্তারা বলেন- আবরার ফাহাদ শুধু কুষ্টিয়ার না সারা দেশের, এই প্রজন্মের প্রথম শহীদ যে দেশের স্বার্থে ফেইসবুকে প্রতিবাদ করে কিছু ছাত্র নামধারী সন্ত্রাসীদের হাতে নির্মম হত্যার শিকার হন। কুষ্টিয়ার এমপি মহোদয়দের ও প্রধানমন্ত্রীর কাছে সকলের আবেদন হত্যাকারীরা যেন বিশ্বজিৎ হত্যার মত পার না পেয়ে যায়, বিশেষ করে কুষ্টিয়া সদর আসনের এমপি মাহবুবউল আলম হানিফের দৃষ্টি আকর্ষণ করা হয় আপনার প্রতিবেশী হিসেবে শুধু নয় নিজ জেলার দায়িত্ববোধ থেকে  এই হত্যার বিচার কুষ্টিয়াবাসী তথা দেশবাসী দ্রুত দেখতে চাই । পরিশেষে তার আতœার মাগফেরাত কামনা করে সমাপ্তি  ঘোষণা করা হয়।

আবরার হত্যায় ছাত্রলীগও ‘সর্বোচ্চ শাস্তি’ চায়

ঢাকা অফিস ॥ বুয়েট শিক্ষার্থী আবরার ফাহাদ হত্যায় জড়িতদের দ্রুতবিচার আইনে বিচারের মাধ্যমে সর্বোচ্চ শাস্তি নিশ্চিতের দাবি জানিয়েছে বাংলাদেশ ছাত্রলীগ। বুধবার ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের মধুর ক্যান্টিনে এক সংবাদ সম্মেলনে এ দাবি জানানো হয়। সংবাদ সম্মেলনে ছাত্রলীগের ভারপ্রাপ্ত সভাপতি আল-নাহিয়ান খান জয়, ভারপ্রাপ্ত সাধারণ সম্পাদক লেখক ভট্টাচার্য লিখিত বক্তব্য পাঠ করেন। আবরার হত্যাকা-ের পরিপ্রেক্ষিতে সংগঠনের নেওয়া নানা পদক্ষেপের পাশাপাশি সংগঠনের দাবিও তুলে ধরেন সভাপতি জয়। তিনি বলেন, “আমরা দাবি জানাই দ্রুততম সময়ের মধ্যে এই হত্যাকান্ডের বিচার প্রক্রিয়া সম্পন্ন করার জন্য। আবরার হত্যা মামলাটি দ্রুত বিচার আইনের আওতায় এনে এবং হত্যাকান্ডের সাথে জড়িত প্রত্যেকের যেন সর্বোচ্চ শাস্তি নিশ্চিত করা সম্ভব হয় সে উপযোগী করে পুরো মামলাটি পরিচালনা করা হয়।” ‘শিবির সংশ্লিষ্টতার’ অভিযোগ তুলে গত রোববার রাতে বুয়েটের শেরে বাংলা হলে তড়িৎ কৌশল দ্বিতীয় বর্ষের ছাত্র আবরার ফাহাদকে পিটিয়ে হত্যার অভিযোগে এ পর্যন্ত যে ১৩ জনকে গ্রেপ্তার করা হয়েছে তাদের অধিকাংশই ছাত্রলীগের। ছাত্রলীগের অনুসন্ধানে উঠে এসেছে, আবরারকে নির্যাতনের সময় নেতাকর্মীরা ‘মদ্যপ’ ছিলেন। এ ঘটনায় ছাত্রলীগ ১১ জনকে সংগঠন থেকে বহিষ্কারও করেছে। ঘটনার পরপরই কেন্দ্রীয় ছাত্রলীগের পক্ষ থেকে দ্রুততার সাথে বিভিন্ন সাংগঠনিক পদক্ষেপ নেওয়া হয় জানিয়ে আল-নাহিয়ান জয় বলেন, “সবপ্রকার পরিচয়ের ঊর্ধ্বে উঠে হত্যাকা-ে জড়িতদের বিচারের দাবি জানিয়ে আনুষ্ঠানিক শোক প্রকাশ ও নিন্দা জানানো হয়েছে। দুই সদস্য বিশিষ্ট একটি সাংগঠনিক তদন্ত কমিটি গঠন এবং কমিটিকে ২৪ ঘণ্টার ভিতর রিপোর্ট জমাদানের নির্দেশ দেওয়া হয়েছে। “২৪ ঘণ্টার পূর্বেই তদন্ত কমিটির রিপোর্ট প্রাপ্তির প্রেক্ষিতে বুয়েট শাখা ছাত্রলীগের ১১ জনকে ছাত্রলীগ থেকে স্থায়ীভাবে বহিষ্কার করা হয়েছে।” তিনি বলেন, বাংলাদেশ ছাত্রলীগের সাথে জড়িত কেউ যদি ব্যক্তি উদ্যোগে কোনো অপরাধ কর্মকান্ডের সাথে জড়িয়ে পড়ে, তারাও বিচারের হাত থেকে রক্ষা পাবে না; অতীতেও পায়নি, ভবিষ্যতেও পাবে না। ছাত্রলীগের ভারপ্রাপ্ত সভাপতি বলেন, “বাংলাদেশ ছাত্রলীগ কখনই কোনো প্রকার সন্ত্রাসী কর্মকা-কে প্রশ্রয় দেয় না, উৎসাহ প্রদান করে না। সংগঠনের পরিচয়-পদবী ব্যবহার করে কতিপয় ব্যক্তির অতিউৎসাহী হয়ে সংঘটিত কোনো কর্মকা-কে বাংলাদেশ ছাত্রলীগ অতীতের ন্যায় বর্তমানে এবং ভবিষ্যতেও প্রশ্রয় দেবে না। সম্প্রতি সংঘটিত আবরার হত্যাকান্ডে বাংলাদেশ ছাত্রলীগ আবারও তা প্রমাণ করেছে।” জয় বলেন, “আইনশৃঙ্খলা বাহিনী দ্রুততম সময়ের মধ্যে এই নৃশংস হত্যাকান্ডের সাথে জড়িত এজাহারভুক্ত ১৯ জনের মধ্যে ১৩ জনকে গ্রেপ্তার করেছে। “আমরা আইনশৃঙ্খলা বাহিনীর কাছে দাবি জানাই, পলাতক অপর অভিযুক্তদেরও যেন স্বল্প সময়ের মধ্যে গ্রেপ্তার করে বিচারের মুখোমুখি করা হয়। একইসাথে এজাহারভুক্ত ১৯ জনের বাইরে আরও যদি কেউ এই হত্যাকা-ের সাথে সংশ্লিষ্ট থাকে তাদেরও যেন অনুসন্ধানের মাধ্যমে খুঁজে বের করে আইনের আওতায় আনা হয়।” এ বিষয়ে ছাত্রলীগের পক্ষ থেকে সব ধরনের সহযোগিতা দেওয়ারও আশ্বাস দেন তিনি। আবরার হত্যাকান্ডের পর বুয়েটে ছাত্র রাজনীতি বন্ধের দাবি উঠেছে। এই দাবিসহ মোট ১০ দফা বাস্তবায়নের দাবিতে সময় বেঁধে দিয়ে আন্দোলন করছে বুয়েটের শিক্ষার্থীরা । সংবাদ সম্মেলনে জয় বলেন, ছাত্র রাজনীতি নিষিদ্ধের ষড়যন্ত্র মোকাবেলা করা হবে। তিনি বলেন, “বিশ্ববিদ্যালয়ে ছাত্র রাজনীতি নিষিদ্ধকরণ, বিভিন্নভাবে ধর্মীয় উন্মাদনা ছড়িয়ে দেশে সাম্প্রদায়িক অস্থিরতা তৈরির চেষ্টা, দেশবিরোধী চুক্তির ধোঁয়া তুলে আন্তর্জাতিক পরিমন্ডলে বাংলাদেশকে হেয় প্রতিপন্ন করার প্রচেষ্টা, প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনাকে হত্যার হুমকি ও কটুক্তিমূলক বক্তব্য প্রদান প্রভৃতির মাধ্যমে কতিপয় নামসর্বস্ব, কর্মী ও কর্মসূচিবিহীন, ব্যানারনির্ভর ছাত্র সংগঠন ও সেসব সংগঠনের নেতারা অস্থিতিশীল পরিবেশ তৈরির চেষ্টা করছে। “ধারাবাহিক উস্কানির মাধ্যমে যে সাংঘর্ষিক পরিস্থিতি সৃষ্টির পাঁয়তারা করছে, বিগত ১১ বছরে সেশনজটবিহীন নির্বিঘ্ন শিক্ষা পরিবেশ বিনষ্টের যে ষড়যন্ত্র রচনা করছে, তা বাংলাদেশ ছাত্রলীগ কোনোমতেই মেনে নিতে পারে না। দেশের ছাত্রসমাজকে সাথে নিয়ে এসব হীন কর্মকান্ড সর্বাত্মকভাবে মোকাবেলা করবে বাংলাদেশ ছাত্রলীগ।” নিজ নিজ শিক্ষা প্রতিষ্ঠানে সব ধরনের ষড়যন্ত্র মোকাবেলায় প্রত্যেককে সর্বোচ্চ সতর্ক থাকার আহ্বান জানান ভারপ্রাপ্ত সাধারণ সম্পাদক লেখক ভট্টচার্য। তিনি বলেন, “আবরার হত্যাকা-ের অনাকাক্সিক্ষত ঘটনাটিকে পুঁজি করে কেউ যেন দলীয় রাজনীতি চাঙা করার নামে আন্দোলন-আন্দোলন খেলায় মেতে উঠতে না পারে, সাম্প্রদায়িক উস্কানি ছড়িয়ে মহান স্বাধীনতা সংগ্রামের মাধ্যমে অর্জিত সম্প্রীতির বাংলাদেশকে কলঙ্কিত করতে না পারে, হীন স্বার্থসিদ্ধির জন্য পরিকল্পিত লাশ ফেলে সন্ত্রাস কায়েম করতে না পারে, শিক্ষার সুষ্ঠু পরিবেশ বিনষ্ট করতে না পারে সে বিষয়ে সজাগ থাকা ছাত্রসমাজের নৈতিক দায়িত্ব।”

কুষ্টিয়ায় কৃতি শিক্ষার্থীদের সংবর্ধনা ও বৃত্তি প্রদানকালে ডিসি আসলাম হোসেন

উন্নত জাতি গঠনে শিক্ষার বিকল্প নেই

কাঞ্চন কুমার ॥ কুষ্টিয়া জেলা পরিষদের উদ্যোগে কৃতি শিক্ষার্থীদের সংবর্ধনা ও বৃত্তি প্রদান করা হয়েছে। গতকাল বুধবার বেলা ১১টায় কুষ্টিয়া পৌরসভা মিলনায়তনে ২০১৯ সালের এসএসসি, এইচএসসি ও সমমান পরীক্ষা জিপিএ-৫ প্রাপ্ত কৃতি শিক্ষার্থীদের সংবর্ধনা ও বৃত্তি প্রদান করা হয়। কৃতি শিক্ষার্থীদের সংবর্ধনা ও বৃত্তি প্রদান অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথির বক্তব্যে জেলা প্রশাসক মো. আসলাম হোসেন বলেন, শিক্ষা মানুষকে আলোকিত করে। উন্নত জাতি গঠনে শিক্ষার বিকল্প নেই। তাই আগামী ২০৪১ সালে উন্নত দেশ গঠনে জাতিকে শিক্ষিত করে গড়ে তুলতে হবে। প্রত্যেক সন্তানের জন্য তাদের পরিবার আদর্শ শিক্ষালয়। তিনি আরো বলেন, সোনা বাংলাদেশ গড়তে হলে, সোনার মানুষ হতে হবে। তিনি দেশের ভবিষ্যৎ প্রজন্ম শিক্ষার্থীদেরকে সৎ যোগ্য ও দেশপ্রেমিক নাগরিক হিসেবে নিজেদেরকে গড়ে তোলার আহ্বান জানান। অনুষ্ঠানে সভাপতির বক্তব্যে জেলা পরিষদের চেয়ারম্যান হাজী রবিউল ইসলাম বলেন, বর্তমান সরকার শিক্ষা ব্যবস্থাপনাকে সর্বাধিক গুরুত্ব প্রদান করে আসছে। শিক্ষার্থীদের মেধা ও মননের জন্য শিক্ষাবৃত্তি অত্যন্ত প্রয়োজনীয়। মেধাবী ও দরিদ্র শিক্ষার্থীদের জন্য জেলা পরিষদের পক্ষ থেকে বৃত্তি প্রদান কার্যক্রম অব্যহত থাকবে। এতে বিশেষ অতিথি ছিলেন জেলা পরিষদের প্রধান নির্বাহী মুন্সী মোঃ মনিরুজ্জামান, জেলা শিক্ষা কর্মকর্তা জায়েদুর রহমান, জেলা পরিষদের সদস্য নাসির উদ্দিন, আব্দুল বাকী, আসাদুজ্জামান চৌধূরী লোটন, শরিফুল ইসলাম, আব্দুল মজিদ মন্ডল, মুজাহিদুল ইসলাম বাবলু, জান্নাতুল মাওয়া রনি, মায়াবী রোমান্স মল্লিক, রোজি সুলতানা, সহকারী প্রকৌশলী শফিকুল আজম, প্রশাসনিক কর্মকর্তা শাহিনুজ্জামান। জেলা পরিষদের সদস্য আলহাজ্ব মহাম্মদ আলী জোয়ার্দ্দারের পরিচালনায় এ সময়ে অনুভূতি ব্যক্ত করে বক্তব্য রাখেন সানআপ ইন্টারন্যাশনাল স্কুলের অধ্যক্ষ শামসুন্নাহার আলো, মিরপুর উপজেলার আট্টিগ্রাম কবিদাদ আলী সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়ের প্রধান শিক্ষক জহুরুল ইসলাম, কৃতি শিক্ষার্থী পবন প্রমুখ। পরে অতিথিবৃন্দ এসএসসিতে ৬শ’ ৩৫ জন ও এইচএসসিতে ১শ’ ৬৭ জন কৃতি শিক্ষার্থীদের হাতে সনদপত্র এবং শিক্ষাবৃত্তি তুলে দেন।

কুষ্টিয়া জেলা মুক্তিযোদ্ধা সংসদের সাবেক কমান্ডার নাছিম উদ্দিন আহমেদ আর নেই

নিজ সংবাদ ॥ কুষ্টিয়া জেলা মুক্তিযোদ্ধা সংসদের সাবেক কমান্ডার বীর মুক্তিযোদ্ধা নাছিম উদ্দিন আহমেদ (৬৫) আর নেই। তিনি বুধবার বাংলাদেশ সময় সকাল সাড়ে ৮টায়  যুক্তরাষ্ট্রের নিউইয়র্কে ইন্তেকাল করেছেন (ইন্না—রাজেউন)। মৃত্যুকালে স্ত্রী, কন্যা, ভাই- বোনসহ অসংখ্য গুণগ্রাহী রেখে যান। মরহুমের পারিবারিক সুত্রে জানা যায়-বুধবার সকালে ৮টার দিকে তিনি নিউইয়র্ক শহরের ব্র“কলিন এলাকায় মেজ মেয়ের বাসার সামনে হাটাহাটি করার মুহুর্তে হৃদরোগে আক্রান্ত হন। সাথে সাথে তাকে নিউইয়র্কের নর্থসেন্টার হসপিটালে ভর্তি করা হলে তিনি সেখানে মারা যান। মুক্তিযোদ্ধা কমান্ডার নাসিম উদ্দিন আহমেদের মৃত্যুর খবরে পরিবারসহ পুরো এলাকায় শোকের ছায়া নেমে আসে। মরহুমের রনাঙ্গনের মুক্তিযোদ্ধাদের মাঝে শোকের ছায়া নেমে আসে। বীর মুক্তিযোদ্ধা নাছিম উদ্দিন আহমেদ কুষ্টিয়া শহরের থানাপাড়া খোদাদাদ সড়কের মরহুম সুজাউদ্দিন আহমেদের ৪ ছেলে ও  ২ মেয়ের মধ্য  সবার বড় ছিলেন। তিনি কয়েক দফায়  দীর্ঘদিন জেলা মুক্তিযোদ্ধা সংসদের কমান্ডার হিসেবে দায়িত্ব পালন করেন। তিনি গত কয়েক বছর নিউইয়র্ক শহরে মেজ মেয়ের কাছে সস্ত্রিক সেখানে থাকতেন। সর্বশেষ চলতি বছরের ২০ আগষ্ট  তিনি বাংলাদেশ থেকে আমেরিকা যান। মরহুমার তিন কন্যার মধ্য বড় মেয়ে ঢাকায়, মেঝ মেয়ে নিউইয়র্কে এবং ছোট মেয়ে কুষ্টিয়ায় অবস্থান করেন। সকলেই বিবাহিত। মরহুম নাছিম উদ্দিন যুক্তরাষ্ট্রের গ্রীনকার্ডধারী। তার মেঝ ভাই মেধা’র সদস্য সচিব শামীম আহমেদ জানান-তাঁর মৃত্যুর খবরে আমাদের পরিবার শোকাহত। তাঁর লাশ দেশে আনার ব্যাপারে প্রক্রিয়া চলছে তিনি পরিবারের পক্ষ থেকে সকলের নিকট তার ভাইয়ের জন্য দোয়া কামনা করেছেন।

এদিকে নিউইয়র্ক থেকে আমাদের বিশেষ প্রতিনিধি জানিয়েছেন বীর মুক্তিযোদ্ধা মরহুম নাসিম উদ্দিন আহমেদের নামাজে জানাযা অনুষ্ঠিত হবে আজ (বৃহস্পতিবার) স্থানীয় সময় বাদ মাগরীব নর্থ বনক্স ইসলামিক সেন্টারে। জানাযা শেষে  ১০ অক্টোবর ২০১৯ নিউইয়র্ক সময় রাত ১০টায় এমিরেট লাইনসে লাশ দেশে পাঠানো হবে ।

কুষ্টিয়া জেলা সমিতির ইউএসএ ইনকের সভাপতি মোঃ আবু মুসা, সাধারণ সম্পাদক মোঃ আসাদুজ্জামান ও বাংলাদেশ দূতাবাস  শোকবার্তা জ্ঞাপন করেছেন।

উল্লেখ্য বীর মুক্তিযোদ্ধা নাসিম উদ্দিন আহম্মেদের গ্রামের বাড়ি কুষ্টিয়ার কুমারখালীর কয়া ইউনিয়নের সুলতানপুরে।

কুষ্টিয়ায় দুর্নীতি বিরোধী মতবিনিময় সভায় জহির রায়হান

তৃণমুল থেকে দুর্নীতির মুলোৎপাটন করা হবে

নিজ সংবাদ ॥ দুর্নীতি দমন কমিশনের মহাপরিচালক (প্রশাসন) মো. জহির রায়হান বলেন- তৃণমুল থেকে দুর্নীতির মুলোৎপাটন করা হবে। শুধু আইন প্রয়োগ করে নয়, আত্মশুদ্ধিই দুর্নীতি প্রতিরোধের প্রধান হাতিয়ার। দুর্নীতিমুক্ত হতে হবে প্রথমে নিজ পরিবার থেকে। এরপর সমাজ ও রাষ্ট্র থেকে দুর্নীতি বিদায় হবে।

কুষ্টিয়া জেলা প্রশাসন ও দুর্নীতি দমন কমিশনের যৌথ উদ্যোগে গতকাল বুধবার জেলা প্রশাসকের সভাকক্ষে দুর্নীতি বিরোধী মতবিনিময় সভায় প্রধান অতিথির বক্তব্যে তিনি এ কথা বলেন। কুষ্টিয়ার জেলা প্রশাসক মোঃ আসলাম হোসেনের সভাপতিত্বে মতবিনিময় সভায় বিশেষ অতিথির বক্তব্য রাখেন কুষ্টিয়া জেলা আওয়ামীলীগের সিনিয়র সহ-সভাপতি ও জেলা পরিষদ চেয়ারম্যান হাজী রবিউল ইসলাম, কুষ্টিয়ার অতিরিক্ত জেলা প্রশাসক সার্বিক মোঃ আজাদ জাহান, অতিরিক্ত জেলা প্রশাসক রাজস্ব ওবায়দুর রহমান, অতিরিক্ত পুলিশ সুপার নুরানী ফেরদৌস দিশা ও কুষ্টিয়া সদর উপজেলা পরিষদ চেয়ারম্যান আতাউর রহমান আতা। অন্যান্যের মধ্যে বক্তব্য রাখেন জেলা শিক্ষা অফিসার মোঃ জায়েদুর রহমান, পিপি এড. অনুপ কুমার নন্দী, বিজ্ঞ জিপি এড. আ স ম আখতারুজ্জামান মাসুম প্রমুখ।

বিভ্রান্তিকর তথ্য

কুষ্টিয়া জেলা পুলিশের বিবৃতি

অদ্য (০৯/১০/২০১৯ খ্রিঃ তারিখ) বিকাল ১৬:৩০ ঘটিকায় বাংলাদেশ প্রকৌশল বিশ^বিদ্যালয়ের মাননীয় ভিসি অধ্যাপক জনাব সাইফুল ইসলাম কুষ্টিয়ায় উপস্থিত হয়ে কুষ্টিয়া জেলার জেলা প্রশাসক, পুলিশ সুপার, কুষ্টিয়া জেলা আওয়ামীলীগের সভাপতি, সেক্রেটারী, জেলা পরিষদের চেয়ারম্যান, সদর উপজেলা পরিষদের চেয়ারম্যানসহ স্থানীয় আওয়ামীলীগের নেতাকর্মীদের সাথে নিয়ে নিহত আবরার ফাহাদ এর গ্রামের বাড়ি কুষ্টিয়া জেলার কুমারখালী থানার রায়ডাঙ্গা গ্রামে গিয়ে পৌঁছান। সেখানে তাঁরা আবরার ফাহাদের দাদা, বাবা, চাচা ও আত্মীয়-স্বজনদের সাথে নিয়ে আবরার ফাহাদের কবর জিয়ারত করেন। কবর জিয়ারত শেষে তার বাবা ও আত্মীয়-স্বজনের সাথে সাক্ষাৎ করে ভিসি মহোদয় ঢাকায় ফিরে যান এবং পুলিশ সুপার ও জেলা প্রশাসক, কুষ্টিয়াসহ অন্যান্যরা কুষ্টিয়া ফিরে আসেন। কিছু কিছু গণমাধ্যম পুলিশ সুপার, কুষ্টিয়ার উদ্ধৃতি দিয়ে বিভ্রান্তি সৃষ্টির লক্ষ্যে প্রচার করছে যে, আবরার ফাহাদ এর পরিবার জামায়াত-শিবির। কিন্তু পুলিশ সুপার, কুষ্টিয়া মহোদয় এমন কোন বিষয়ে কারো কাছে কোন বক্তব্য প্রদান করেন নাই। কিছু স্বার্থান্বেষী মহল অতিরঞ্জিত করে রাজনৈতিক উদ্দেশ্য হাসিল ও পুলিশের ভাবমূর্তি ক্ষুন্ন করার জন্য এসব মিথ্যা, বিভ্রান্তিকর তথ্য ছড়াচ্ছে, যা অনাকাঙ্খিত ও অনভিপ্রেত। সংবাদ বিজ্ঞপ্তি

আবরার হত্যা

শেরে বাংলা হলের প্রভোস্টের পদত্যাগ

ঢাকা অফিস ॥ বুয়েট শিক্ষার্থী আবরার ফাহাদ হত্যাকান্ডের প্রতিবাদে উত্তাল আন্দোলনের মধ্যে শিক্ষার্থীদের দাবি মেনে শেরেবাংলা হলের প্রভোস্টের পদ ছাড়লেন অধ্যাপক জাফর ইকবাল খান। গতকাল বুধবার বুয়েট শহীদ মিনার এলাকায় অবস্থান নিয়ে থাকা আন্দোলনকারীদের সামনে এসে বিশ্ববিদ্যালয় শিক্ষক সমিতির সভাপতি একেএম মাসুদ শিক্ষার্থীদের এ কথা জানান। একইসঙ্গে শিক্ষার্থীদের সুরক্ষা দিতে ব্যর্থতার জন্য শিক্ষক সমিতির পক্ষ থেকে উপাচার্য অধ্যাপক সাইফুল ইসলামের পদত্যাগ দাবি করেন শিক্ষক সমিতির সভাপতি। রোববার সন্ধ্যায় বুয়েটের তড়িৎ কৌশল বিভাগের দ্বিতীয় বর্ষের শিক্ষার্থী ও শেরে বাংলা হলের আবাসিক ছাত্র আবরারকে ডেকে নিয়ে যায় হলের কিছু ছাত্রলীগ নেতা। শিবির সন্দেহে তাদের জিজ্ঞাসাবাদ ও নির্যাতনের এক পর্যায়ে গভীর রাতে হলেই তার মৃত্যু হয়। সোমবার ভোরে পুলিশ তার লাশ উদ্ধার করে ঢাকা মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে নিয়ে যায়। সোমবার দিনভর বিক্ষুব্ধ শিক্ষার্থীরা ঘটনাস্থলের সিসিটিভি ফুটেজ প্রকাশের দাবিতে আন্দোলন করলেও উপাচার্য কিংবা হলের প্রভোস্ট ঘটনাস্থলে যাননি, যা নিয়ে ক্ষোভ রয়েছে শিক্ষার্থীদের মধ্যে। যে ১০ দফা দাবিতে শিক্ষার্থীরা আন্দোলন করছে তার মধ্যে ‘রাজনৈতিক ক্ষমতা ব্যবহার করে আবাসিক হল থেকে ছাত্র উৎখাতের ব্যাপারে নির্লিপ্ত থাকা এবং ছাত্রদের নিরাপত্তা নিশ্চিতে ব্যর্থ হওয়ায়’ শেরে বাংলা হলের প্রভোস্টকে ১১ অক্টোবর বিকাল ৫টার মধ্যে প্রত্যাহার করার দাবি ছিল একটি। বাকি দাবিগুলো পূরণে সময় বেঁধে দিয়ে আন্দোলনরত শিক্ষার্থীরা বলেছে, নির্ধারিত সময়ে তাদের দাবি পূরণ না হলে ১৪ অক্টোবর অনুষ্ঠেয় বুয়েটের ভর্তি পরীক্ষাসহ সব অ্যাকাডেমিক কার্যক্রম বন্ধ করে দেওয়া হবে।