সৌদির ৩ ঘাঁটি ও ১৫০ বর্গকিমি. এলাকা দখলে নিয়েছে হুতিরা!

ঢাকা অফিস ॥ ইয়েমেন সীমান্তবর্তী সৌদি আরবের নজরান প্রদেশে সাম্প্রতিক হামলায় সৌদি আরবের তিনটি সামরিক ঘাঁটি এবং ১৫০ বর্গকিলোমিটার এলাকা নিয়ন্ত্রণে নেয়ার দাবি করেছে ইরান-সমর্থিত হুতি বিদ্রোহীরা। মঙ্গলবার বিকালে ইয়েমেনের রাজধানী সানায় এক সংবাদ সম্মেলনে হুতি মুখপাত্র ব্রিগেডিয়ার জেনারেল ইয়াহিয়া সারি এ দাবি করেন। খবর ইরনার। তিনি বলেন, এই অভিযানে সৌদি সামরিক ঘাঁটি দখল এবং সেখান থেকে প্রচুর পরিমাণে অস্ত্র ও গোলাবারুদ উদ্ধার করা হয়েছে। এছাড়া ১৩০টির বেশি আর আর্মার্ড ভেহিকেল ধ্বংস ও দখল এসেছে। সম্প্রতি যে ভিডিও ফুটেজ প্রকাশ করা হয়েছে তাতে এসব এলাকায় নিজেদের পূর্ণ নিয়ন্ত্রণের চিত্র দেখা গেছে বলেও দাবি করেন হুতি মুখপাত্র। জেনারেল ইয়াহিয়া সারি আরও বলেন, আমাদের সামরিক বাহিনীর অভিযান বন্ধ হবে না; সশস্ত্র বাহিনী বিভিন্ন ধরনের অভিযান অব্যাহত রেখেছে এবং শত্রুর হামলা মোকাবেলার জন্য আমাদের হাতে প্রচুর অস্ত্র ও গোলাবারুদ রয়েছে। প্রসঙ্গত, গত শনিবার সৌদি আরবের ৫০০ সেনাকে হত্যা, দুই হাজার সেনাকে আটক ও সামরিক বাহিনীর যানবাহনের একটি বহরকে জব্দের কথা দাবি করেছে হুতি বিদ্রোহীরা। ৭২ ঘণ্টার ওই অভিযানে সৌদি আরবের ৫০০ সেনাকে হত্যা ও কয়েক হাজার সেনা সদস্য আটকের দাবি করেছে তারা। সৌদি সেনা হত্যা ও গ্রেফতারের দাবির পক্ষে প্রমাণ হিসেবে স্থির চিত্র ও অসম্পূর্ণ ভিডিও উপস্থাপন করেছেন বিদ্রোহীরা। ছবিতে সেনারা উর্দি পরিহিত না, আবার দাবিকে সত্য বলে প্রমাণ করতে যথেষ্ট প্রমাণ যেমন নেই, তেমন সৌদি আরবের কাছ থেকেও ঘটনার সত্যতা নিশ্চিত করা যায়নি। উল্টে যাওয়া সৌদি যান, স্থির দাঁড়িয়ে থাকা সৌদি সেনা বহরের যানবাহনের ছবি দেখিয়ে হুতিরা বলেন, দক্ষিণ নাজরান অঞ্চলে গত তিন দিন ধরে এই হামলার ঘটনা ঘটেছে। তবে ইরানের প্রেস টিভি দাবি করেছে, হুতি বাহিনী যে ভিডিও ফুটেজ প্রকাশ করেছে তাতে সৌদি আরবের কোন এলাকায় তারা অভিযান চালিয়েছে তার যেমন বর্ণনা রয়েছে তেমনি হুতি যোদ্ধারা সৌদি অবস্থানে যে সমস্ত গোলাবর্ষণ করছে তার দৃশ্যও রয়েছে।

কাশ্মীরে ১৪৪ শিশুকে আটকের কথা স্বীকার করল প্রশাসন

ঢাকা অফিস ॥ ৩৭০ ধারা বিলোপকে কেন্দ্র করে উদ্ভূত পরিস্থিতিতে কাশ্মীর থেকে ১৪৪ শিশুকে আটক করা হয়েছে বলে স্বীকার করেছে স্থানীয় প্রশাসন। ৯ থেকে ১১ বছর বয়সী ওই শিশুদের বিভিন্ন হোমে রাখা হয়েছে বলে জানিয়েছে তারা। মঙ্গলবার সুপ্রিম কোর্ট নিযুক্ত বিশেষ কমিটিকে জম্মু-কাশ্মীর প্রশাসনের পক্ষ থেকে এমনটি জানানো হয়েছে। তবে এদের কাউকেই বেআইনি ভাবে আটক করা হয়নি বলে দাবি সরকারের। রাজ্য প্রশাসনের যুক্তি, পাথর ছোড়া, দাঙ্গা-হাঙ্গামা বাঁধানো এবং সরকারি ও বেসরকারি সম্পত্তি নষ্টে যুক্ত থাকায় আটক করা হয়েছে ওই শিশুদের। গত ৫ আগস্ট জম্মু-কাশ্মীরের বিশেষ মর্যাদা বিলোপ করে জম্মু-কাশ্মীর এবং লাদাখ, দু’টি পৃথক কেন্দ্রশাসিত অঞ্চল গঠন করে কেন্দ্রীয় সরকার। সেই থেকে উপত্যকার সঙ্গে কার্যত যোগাযোগ বিচ্ছিন্ন গোটা ভারতের। এমন পরিস্থিতিতে বিভিন্ন আন্তর্জাতিক সংবাদমাধ্যম এবং সমাজসেবামূলক সংগঠনের পক্ষ থেকে দমন-পীড়নের অভিযোগ তোলা হয়। এই দমননীতি থেকে শিশুদেরও ছাড় দেওয়া হচ্ছে না বলেও অভিযোগ ওঠে নানা মহল থেকে। এমন অভিযোগ নিয়ে সুপ্রিম কোর্টে একটি জনস্বার্থ মামলা দায়রে করেন সমাজকর্মী এনাক্ষী গঙ্গোপাধ্যায় এবং শান্তা সিংহ। তাদের অভিযোগ, উপত্যকায় বেআইনি ভাবে ছোট ছোট ছেলেমেয়েদের আটক করছে নিরাপত্তাবাহিনী। সমাজকর্মীদের এই অভিযোগ খতিয়ে দেখতে জম্মু-কাশ্মীর হাইকোর্টের জুভেনাইল জাস্টিস কমিটিকে নির্দেশ দেয় শীর্ষ আদালত। মঙ্গলবার বিচারপতি এনভি রমণ, আর সুভাষ রেড্ডি এবং বিআর গাবাইয়ের ডিভিশন বেঞ্চে প্রাথমিক রিপোর্ট জমা দেয় বিচারপতি আলি মহম্মদ মাগ্রের নেতৃত্বাধীন চার সদস্যের ওই কমিটি। তারপরই বিষয়টি সামনে এসেছে। কমিটির তাদের রিপোর্টে কার্যত নিজেদের মতামত পেশ করেনি। শুধুমাত্র পুলিশের বয়ান উদ্ধৃত করে রিপোর্ট জমা দিয়েছে। পুলিশের বয়ান অনুযায়ী, বেআইনি ভাবে কোনও শিশুকে আটক করা হয়নি। বরং কোনও নাবালক আইন বিরোধী কাজে লিপ্ত রয়েছে বলে জানা গেলে, আইন মেনেই তার বিরুদ্ধে কড়া পদক্ষেপ নেয়া হয়েছে। সূত্র: আনন্দবাজার পত্রিকা

ঝিনাইদহ সরকারি ভেটেরিনারী কলেজের শিক্ষার্থীদের আবারো সড়ক অবরোধ

ঝিনাইদহ প্রতিনিধি ॥ ক্লাস-পরীক্ষা চালু, যশোর বিজ্ঞান ও প্রযুক্তি বিশ্ববিদ্যালয় থেকে অনাপত্তিপত্র পাওয়ার দাবিতে আবারো সড়ক অবরোধ করে অনশন কর্মসূচী পালন করেছে ঝিনাইদহ সরকারি ভেটেরিনারী কলেজের শিক্ষার্থীরা। গতকাল বুধবার সকাল থেকে দুপুর পর্যন্ত ঝিনাইদহ-চুয়াডাঙ্গা মহাসড়কের সদর উপজেলার হলিধানী এলাকার কলেজের সামনে এ কর্মসূচী পালন করে তারা। এতে বন্ধ হয়ে যায় ঝিনাইদহ ও চুয়াডাঙ্গা গামী সকল প্রকার যানবাহন। ভোগান্তীতে পড়ে ওই সড়কে চলাচলকারী যাত্রীরা। এসময় শিক্ষার্থীরা অভিযোগ করেন, কলেজটি শেরেবাংলা কৃষি বিশ্ববিদ্যালয়ের অধিভুক্ত হয়েছে। কিন্তু যশোর বিজ্ঞান ও প্রযুক্তি বিশ্ববিদ্যালয় অনাপত্তিপত্র দিচেছ না। যে কারণে গত ৯ মাস যাবত বন্ধ রয়েছে তাদের ক্লাস ও পরীক্ষা। গত বুধবার ক্লাস-পরীক্ষা চালু ও এনওসি পাওয়ার দাবীতে সড়ক অবরোধ করে তারা। সে সময় জেলা প্রশাসনের প্রতিনিধি ও পুলিশের কর্মকর্তাদের আশ্বাসে ১ ঘন্টা সড়ক অবরোধ করেন। শিক্ষার্থীদের মঙ্গলবার পর্যন্ত দেওয়া আল্টিমেটামের পরও অনাপত্তিপত্র না দেওয়ার কারণে বুধবার আবারো সড়ক অবরোধ করে তারা।

‘অভিবাসন প্রত্যাশীদের পায়ে গুলি করার প্রস্তাব দিয়েছিলেন’ ট্রাম্প

ঢাকা অফিস ॥ অভিবাসন প্রত্যাশীদের পায়ে গুলি করে তাদের গতি হ্রাস করার প্রস্তাব দিয়েছিলেন মার্কিন প্রেসিডেন্ট ডনাল্ড ট্রাম্প, নতুন একটি বইয়ে এমনটি বলা হয়েছে। নিউ ইয়র্ক টাইমসের দুই সংবাদিকের লেখা বইটিতে বলা হয়েছে, যুক্তরাষ্ট্রের দক্ষিণাঞ্চলীয় সীমান্ত দিয়ে অভিবাসন প্রত্যাশীদের প্রবেশ থামাতে অনেকগুলো চরম পদ্ধতির প্রস্তাব করেছিলেন ট্রাম্প। এগুলোর মধ্যে বিদ্যুতায়িত, ধাতুর কাঁটাযুক্ত দেয়াল নির্মাণ এবং সাপ বা কুমিরে পরিপূর্ণ পরিখা নির্মাণের বিষয়ও ছিল; জানিয়েছে বিবিসি। মেক্সিকোর সীমান্তে দেয়াল নির্মাণ ট্রাম্পের অন্যতম নির্বাচনী প্রতিশ্র“তি, যা বাস্তবায়নে তিনি দৃঢ় প্রতিজ্ঞ। এই দেয়াল নির্মাণ শুরু হয়েছে এবং এর নির্মাণে পেন্টাগন তাদের সামরিক বাজেট থেকে তিন দশমিক ছয় বিলিয়ন ডলার মঞ্জুর করেছে। প্রকাশিত ওই প্রতিবেদনের বিষয়ে হোয়াইট হাউস কোনো মন্তব্য করেনি। ‘বর্ডার ওয়ারস: ইনসাইড ট্রাম্পস অ্যাসাল্ট অন ইমিগ্রেশন’ নামের এই বইটি লিখেছেন সাংবাদিক মাইকেল শেয়ার ও জুলি ডেভিস। অনামা বহু কর্মকর্তার সাক্ষাৎকারের ভিত্তিতে বইটি লিখেছেন তারা। নিউ ইয়র্ক টাইমস বইটি প্রকাশ করেছে।

বাংলাদেশ ডাক কর্মচারী সমন্বয় পরিষদের সভা অনুষ্ঠিত

বাংলাদেশ ডাক কর্মচারী সমন্বয় পরিষদ (বাডাকসপ) এর এক সভা গতকাল বুধবার বিকাল ৫টায় আরিফুজ্জামান  চৌধুরীর সভাপতিত্বে বাডাকসপের অস্থায়ী কার্যালয়ে অনুষ্ঠিত হয়। সভার শুরুতে পবিত্র কোরআন হতে তেলওয়াত করেন মাসুদ মিয়া, সভাপতি, ঢাকা জিপিও জেলা শাখা। সভার আলোচ্য সূচী অনুযায়ী স্বাগতিক বক্তব্য রাখেন বাডাকসপের মহাসচিব আলহাজ্ব আমজাদ আলী খান। সভায় আরো বক্তব্য রাখেন আব্দুল হালিম মোল্লা, সাইদুল ইসলাম পিপলু, ইদ্রিস মজুমদার, আব্দুল মান্নান, আবু তাহের, আব্দুল আজিজ, নুরুন্নবী, জাকির হোসেন উত্তর, আবুল কালাম আজাদ, জাকির হোসেন, আব্দুল আউয়াল, মির্জা মজিবুর রহমান, শফিকুল ইসলাম, বজলুর রশীদ, মোঃ জামাল হোসেন, মোস্তফা কামাল, শফি মো: রেজা, আলী রাজ, কামাল হোসেন, মোঃ শাহিন, জাকির হোসেন দক্ষিন,  নুরুদ্দিন সবুজ।  সভায় সর্বসম্মতিক্রমে নিম্নলিখিত সিদ্ধান্তসমূহ গৃহীত হয় : ৯ অক্টোবর বিশ্ব ডাক দিবস উপলক্ষ্যে সর্বস্তরের কর্মচারীদের পক্ষ থেকে সকাল আট ঘটিকায় র‌্যালী, বিকালে আলোচনা সভা, পুরষ্কার বিতরন ও অবসরপ্রাপ্ত কর্মচারীদের বিদায় অনুষ্ঠান এবং ডাক ভবন হতে ডাক অধিদপ্তরসহ চৌদ্দটি অফিস স্থানান্তের সিদ্ধান্ত বাতিলসহ কর্মচারীদের ১৭ দফা দাবী বাস্তবায়ন ও মহাসমাবেশ সফল করার লক্ষ্যে বিভিন্ন উপ- কমিটি গঠন করা হয়। সংবাদ বিজ্ঞপ্তি

গাংনীতে জাতীয় উৎপাদনশীলতা দিবস উদযাপন উপলক্ষে র‌্যালি ও আলোচনা সভা

গাংনী প্রতিনিধি ॥ ‘বৈশ্বিক প্রতিযোগিতায় উৎপাদনশীলতা” প্রতিপাদ্য বিষয় নিয়ে গাংনীতে জাতীয় উৎপাদনশীলতা দিবস পালিত হয়েছে। দিবসটি উপলক্ষে গতকাল বুধবার সকাল ১১টার দিকে  গাংনী উপজেলা প্রশাসন এ কর্মসূচীর আয়োজন করে। দিবসটি পালন উপলক্ষে সকাল ১১টার সময় গাংনী উপজেলা পরিষদের সভাকক্ষে র‌্যালি শেষে সংক্ষিপ্ত আলোচনা সভা অনুষ্ঠিত হয়। গাংনী উপজেলা নির্বাহী অফিসার দিলারা রহমানের সভাপতিত্বে অনুষ্ঠিত আলোচনা সভায় বক্তব্য রাখেন, উপজেলা  সহকারী কমিশনার (ভূমি) সুখময় সরকার, বিশিষ্ট সাংস্কৃতিক ব্যক্তিত্ব সিরাজুল ইসলাম স্যার, গাংনী উপজেলা পরিষদের মহিলা ভাইস চেয়ারম্যান ফারহানা ইয়াসমিন, এমপির প্রতিনিধি মনিরুজ্জামান আতু, উপজেলা মহিলা বিষয়ক কর্মকর্তা নাছিমা খাতুন, উপজেলা পরিবার পরিকল্পনা অফিসার (ভারপ্রাপ্ত) নাসরিন আখতার, গাংনী উপজেলা প্রেস ক্লাবের সভাপতি আমিরুল ইসলাম অল্ডাম প্রমুখ। স্বাগত বক্তব্য রাখেন গাংনী উপজেলা  নির্বাহী অফিসার দিলারা রহমান। অনুষ্ঠানে রাজনৈতিক নেতৃবৃন্দ, সরকারী কর্মকর্তা, সুশীল সমাজের নেতৃবৃন্দ, নারীনেত্রী ও কৃষকবৃন্দ উপস্থিত ছিলেন।

সকলের অধিকার সমুন্নত রাখতে জাতীয় মানবাধিকার কমিশনকে সোচ্চার হতে আহবান স্পিকারের

ঢাকা অফিস ॥ স্পিকার ড. শিরীন শারমিন চৌধুরী নারী ও শিশুসহ সকল নাগরিকের অধিকার সমুন্নত রাখতে জাতীয় মানবাধিকার কমিশনকে সোচ্চার হতে আহবান জানিয়েছেন। সংসদ ভবনে গতকাল নবনিযুক্ত জাতীয় মানবাধিকার কমিশনের চেয়ারম্যান নাসিমা বেগমের নেতৃত্বে কমিশনের সদস্যবৃন্দ তার সাথে সাক্ষাৎ করলে তিনি এ আহবান জানান। এসময় স্পিকার মানবাধিকার কমিশনের নবনিযুক্ত চেয়ারম্যানসহ অন্যান্য সদস্যদের অভিনন্দন জানান। সাক্ষাৎকালে তারা মানবাধিকার সংশ্লিষ্ট বিভিন্ন বিষয়ে আলোচনা করেন। স্পিকার মানবাধিকার বিষয়ে সচেতনতা বাড়ানোর প্রতি গুরুত্বারোপ করে বলেন, বাংলাদেশের সংবিধানে নাগরিকের অধিকার সংরক্ষণ করা হয়েছে। কাউকে বঞ্চিত করার কোনো সুযোগ নেই। স্পিকার বলেন, নবনিযুক্ত কমিশনের সদস্যবৃন্দ কর্মজীবনের দক্ষতা ও অভিজ্ঞতার আলোকে দায়িত্ব পালনে সচেষ্ট হবেন। এ সময় তিনি কমিশনের দেয়া প্রয়োজনীয় সুপারিশ সরকারকে উপকৃত করবে বলে উল্লেখ করেন। জাতীয় মানবাধিকার কমিশনে নবনিযুক্ত চেয়ারম্যান নাসিমা বেগম স্পিকারকে কমিশনের প্রথম বৈঠক সম্পর্কে অবহিত করেন। এ সময় তিনি মানবাধিকার কমিশনকে শক্তিশালীকরণ, নিজস্ব কার্যালয় নির্মাণ ও আধুনিকায়ন, বাজেট বরাদ্দ ও জনবল নিয়োগসহ বিভিন্ন বিষয়ে স্পিকারের সহযোগিতা কামনা করেন। স্পিকার ড. শিরীন শারমিন চৌধুরী জাতীয় মানবাধিকার কমিশনকে সার্বিক সহযোগিতার আশ্বাস দেন। এসময় জাতীয় মানবাধিকার কমিশনে নবনিযুক্ত সদস্য ড. কামাল উদ্দীন আহমেদ, ড. নমিতা হালদার, জেসমিন আরা বেগম, মিজানুর রহমান খান এবং চিংকিউ রোয়াজা উপস্থিত ছিলেন।

আমলায় কমরেড জসিম উদ্দিনের স্মরণসভা অনুষ্ঠিত

আমলা অফিস ॥ কুষ্টিয়ার মিরপুরে উপমহাদেশের প্রখ্যাত শ্রমিক নেতা ও বাংলাদেশের কমিউনিস্ট পার্টির (সিপিবি) উপদেষ্টা কমরেড জসিম উদ্দিন মন্ডলের স্মরণসভা অনুষ্ঠিত হয়েছে। গতকাল বুধবার বিকেলে উপজেলার আমলা বাজারে বাংলাদেশের কমিউনিস্ট পার্টির  উদ্যোগে এ স্মরণসভা অনুষ্ঠিত হয়। স্মরণসভায় জসিম উদ্দিন মন্ডলের ভাই বীর মুক্তিযোদ্ধা আব্দুল করিমের সভাপতিত্বে প্রধান অতিথির বক্তব্য রাখেন সিপিবি’র কেন্দ্রীয় কমিটির সম্পাদক মন্ডলীর সদস্য কমরেড জলি তালুকদার। বিশেষ অতিথির বক্তব্য রাখেন সিপিবির কুষ্টিয়া জেলা শাখার সভাপতি কমরেড ওয়াকিল মুজাহিদ, সম্পাদক মন্ডলীয় সদস্য কমরেড রফিকুল ইসলাম, কমরেড ওয়াহিদুজ্জামান পিন্টু, সদস্য কমরেড সামসুজ্জোহা মাসুম, পাবনা জেলা সিপিবি’র সাধারন সম্পাদক কমরেড আহসান হাবিব, আমলা শাখার সাধারণ সম্পাদক আব্দুর রাজ্জাক, সদস্য রবিউল আওয়াল, ছাত্র ইউনিয়নের সাংগাঠনিক সম্পাদক রাজিব আহম্মেদ প্রমুখ। উল্লেখ্যঃ ২০১৭ সালের ২ অক্টোবর সকাল ৬টায় বার্ধক্যজনিত কারনে কমরেড জসিম উদ্দিন মন্ডল ঢাকার একটি হাসপাতালে শেষ নিঃশ্বাস ত্যাগ করেন। মৃত্যকালে তার বয়স হয়েছিল ৯৫ বছর। জসিম মন্ডল শ্রমিক আন্দোলন, ব্রিটিশ খেদাও আন্দোলন, কৃষক আন্দোলন ও তেভাগা আন্দোলনে সক্রিয় ভূমিকা রেখেছেন। পাকিস্থান আমলে ১৯৬৬ সালের ছয় দফা আন্দোলন, ১৯৬৯ সালের গণঅভ্যূত্থান ও ১৯৭১ সালের মুক্তিযুদ্ধে গুরুত্বপূর্ণ অবদান রাখেন তিনি। স্বাধীনতা-পরবর্তী বিভিন্ন গণআন্দোলন ছাড়াও নব্বইয়ের  স্বৈরাচার বিরোধী আন্দোলনেও সক্রিয় ভূমিকা রেখেছেন।

খোকসা-জানিপুর মডেল সরকারী প্রাথমিক বিদ্যালয়ে মিডডে মিল উদ্বোধন

খোকসা প্রতিনিধি  ॥ কুষ্টিয়ার খোকসায় খোকসা-জানিপুর মডেল সরকারী প্রাথমিক বিদ্যালয়ে মিডডে মিল উদ্বোধন করা হয়েছে। গতকাল বুধবার সকালে বিদ্যালয়ের প্রধান শিক্ষক আবু হানিফের নিজ উদ্যোগে মিডডে মিল উদ্বোধন করেন প্রাথমিক শিক্ষা অফিসার মির্জা গোলাম মুহাম্মদ বেগ। উপস্থিত ছিলেন সহকারী প্রাথমিক শিক্ষা অফিসার হোসেন মুহম্মদ বেলাল, সহকারী প্রাথমিক শিক্ষা অফিসার সুপ্রিয়া রানী বিশ্বাস, সহকারী প্রাথমিক শিক্ষা অফিসার সিপ্রা রানী বিশ্বাস, কমলাপুর রুমি সরকারী প্রাথমিক বিদ্যালয়ের প্রধান শিক্ষক রেজাউল করিম, মালিগ্রাম সরকারী প্রাথমিক বিদ্যালয়ের প্রধান শিক্ষক মায়া রানী, কমলাপুর সরকারী প্রাথমিক বিদ্যালয়ের প্রধান শিক্ষক বেলা প্রমুখ। খোকসা-জানিপুর মডেল সরকারী প্রাথমিক বিদ্যালয়ে খোকসার একটি ঐতিহ্য বাহী বিদ্যালয় এটি ১১৯ বছরের পুরাতন একটি বিদ্যালয় যাহা বর্তমান প্রধান শিক্ষক আবু হানিফের চেষ্টায় ইতিমধ্যে কুষ্টিয়া তথা খুলনা বিভাগের মধ্যে শ্রেষ্ঠ স্থান অধিকারের গৌরব অর্জন করেছেন। এবারও প্রধান শিক্ষক আবু হানিফ এর নিজ উদ্যোগে মিডডে মিড উদ্বোধন করা হয়েছে। এ ছাড়াও উদ্বোধনী অনুষ্ঠানে উপজেলা বিভিন্ন শিক্ষা প্রতিষ্ঠানের প্রধান, অভিভাবক, ছাত্র-ছাত্রী, সুধী, সাংবাদিক উপস্থিত ছিলেন।

রোহিঙ্গাদের জাতীয় পরিচয়পত্র দেবে মিয়ানমার – পররাষ্ট্রমন্ত্রী

ঢাকা অফিস ॥ নাগরিক হিসেবে শনাক্তের পর রোহিঙ্গাদের পরিচয়পত্র দিতে মিয়ানমার সম্মত হয়েছে বলে জানিয়েছেন পররাষ্ট্রমন্ত্রী একে আব্দুল মোমেন। নিউ ইয়র্কে সদ্য শেষ হওয়া জাতিসংঘ সাধারণ অধিবেশনে এটি বাংলাদেশের জন্য একটি ‘বড় অর্জন’ হিসেবে দেখছেন তিনি। ঢাকায় বুধবার এক আলোচনা সভায় অংশ নিতে এসে তিনি জাতিসংঘ অধিবেশনে রোহিঙ্গা সঙ্কট নিয়ে বাংলাদেশের বেশকিছু অর্জনের কথাও সাংবাদিকদের কাছে তুলে ধরেন পররাষ্ট্রমন্ত্রী। বাংলাদেশ এন্টারপ্রাইজ ইন্সটিটিউটের উদ্যোগে সহিংসতা ও উগ্রবাদ প্রতিরোধে যুব সমাজের ভূমিকা শীর্ষক আলোচনা অনুষ্ঠিত হয়। জাতিসংঘ সাধারণ অধিবেশনের ফাঁকে গত ২৪ সেপ্টেম্বর চীনের মধ্যস্থতায় বৈঠকে বসেন বাংলাদেশ ও মিয়ানমারের পররাষ্ট্রমন্ত্রী। রোহিঙ্গাদের দেশে ফেরানোর আনুষ্ঠানিক সংলাপে চীনকে সঙ্গে নিয়ে একটি ‘ত্রিপক্ষীয় যৌথ কার্যনির্বাহী’ ফোরাম গঠনে মিয়ানমারের সম্মতি আসে। রোহিঙ্গা সঙ্কট যে মিয়ানমারের তৈরি এবং এর সমাধান তাদেরই করতে হবে, সেই বিষয়টিতে জাতিসংঘ সাধারণ পরিষদের অধিবেশনে প্রায় সব দেশ মত দিয়েছে বলে জানান পররাষ্ট্রমন্ত্রী একে আব্দুল মোমেন। তিনি বলেন, “নাগরিকত্ব শনাক্তকরণে রোহিঙ্গাদের যে আবেদনপত্র পূরণ করতে দেওয়া হয়েছিল, তাতে ভুল থাকার কথা মিয়ানমার স্বীকার করেছে। শনাক্ত হওয়া নাগরিকদের যত দ্রুত সম্ভব ফিরিয়ে নেওয়া হবে বলেও জানিয়েছে মিয়ানমার। “তারা (রোহিঙ্গাদের) নতুন নতুন ফরম দিতে এবং নাগরিকত্ব শনাক্ত হওয়ার পর সবাইকে জাতীয় পরিচয়পত্র দিতে রাজি হয়েছে।” বর্তমানে ১১ লাখের বেশি রোহিঙ্গা বাংলাদেশে আশ্রয় নিয়ে আছে, যাদের মধ্যে সাড়ে সাত লাখ রোহিঙ্গা এসেছে ২০১৭ সালের আগস্টে রাখাইনে নতুন করে মিয়ানমারের সেনাবাহিনীর দমন-পীড়ন শুরু হওয়ার পর। জাতিসংঘ ওই অভিযানকে ‘জাতিগত নির্মূল’ অভিযান হিসেবে বর্ণনা করে আসছে। মিয়ানমার উপযুক্ত পরিবেশ তৈরি করতে ব্যর্থ হওয়ায় দুই দফা চেষ্টা করেও রোহিঙ্গাদের কাউকে তাদের দেশে ফেরত পাঠানো যায়নি। প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনাও এবার জাতিসংঘ অধিবেশনসহ বিভিন্ন ফোরামে রোহিঙ্গা সঙ্কটের চিত্র বিশ্বের সামনে তুলে ধরেছেন। গত শুক্রবার জাতিসংঘের সাধারণ পরিষদের ৭৪তম অধিবেশনের দেওয়া বক্তব্যে বাংলাদেশের সরকারপ্রধান বাস্তুচ্যুত রোহিঙ্গাদের অনিশ্চয়তা যে আঞ্চলিক সংকটের মাত্রা পেতে যাচ্ছে, তা বিশ্বকে উপলব্ধি করার আহ্বান জানান। রোহিঙ্গাদের নিজ দেশে ফেরাতে করতে জাতিসংঘে চারটি প্রস্তাবও দেন তিনি। এর আগে গত বুধবার মার্কিন থিংক ট্যাংক ‘কাউন্সিল অন ফরেইন রিলেশনস’ আয়োজিত এক সংলাপে শেখ হাসিনা বলেন, রোহিঙ্গা সঙ্কট সৃষ্টি করেছে মিয়ানমার, এ সমস্যার সমাধানও সেখানেই রয়েছে। মিয়ানমারের কারণে সৃষ্ট রোহিঙ্গা সঙ্কট বাংলাদেশের উন্নয়নকে চ্যালেঞ্জের মুখে ফেলছে বলেও সেখানে মন্তব্য করেন তিনি।

অভিযান জটিল সমীকরণের বহিঃপ্রকাশ – রিজভী

ঢাকা অফিস ॥ বিএনপির সিনিয়র যুগ্ম মহাসচিব রুহুল কবির রিজভী বলেছেন, চলমান অভিযান বড় কোনো অপকর্মের পূর্বাভাস। এই অভিযান প্রতিহিংসা, ঈর্ষা, চাঁদাবাজী ও স্বজনপোষণের রাজনীতির জটিল সমীকরণের বহিঃপ্রকাশ। গতকাল বুধবার  দুপুরে নয়াপল্টনে দলের কেন্দ্রীয় কার্যালয়ে সংবাদ সম্মেলনে তিনি এসব কথা বলেন। তিনি বলেন, আমরা আগেই বলেছিলাম, দুর্নীতির নামে কথিত অভিযান সম্পূর্ণ রাজনৈতিক হীন উদ্দেশ্যমূলক। ফলে গত ১৩ বছরে আওয়ামী লীগের ঝুড়ি থেকে মহাদুর্নীতির বাতাসা নয় বরং যখন বড় বড় চমচম বের হতে শুরু করেছে তখন সেটির দায় চাপানোর জন্য তারা লন্ডনের রাস্তা খুঁজে বেড়াচ্ছে। রিজভী বলেন, দুর্নীতিধর্মী রাজনীতির পৃষ্ঠপোষক আওয়ামী লীগ। তাই চলমান সন্দেহজনক অভিযানে ধৃত আওয়ামী যুবলীগ-ছাত্রলীগের চুনোপুটিদের সাথে বিএনপি’র নাম জড়াতে সরকার জনগণের কোন সাড়া পাচ্ছে না। তিনি বলেন, খোদ রাজধানীতে গত ১৩ বছর যাবত ডজন ডজন ক্যাসিনো গড়েছে যুবলীগ ও তাদের গডফাদাররা, এই সরকারের আশ্রয়ে-প্রশ্রয়ে দুর্বৃত্তরা টাকার কুমির হয়েছে। আওয়ামী লীগ-যুবলীগ-ছাত্রলীগের চাঁদাবাজী ও দুর্নীতির বৃত্তান্ত শুনে দেশবাসী বিস্ময়ে হতবাক হয়েছে। দুর্নীতির ইতিহাসে এ এক স্বতন্ত্র ও ব্যতিক্রমী দৃষ্টান্ত। তিনি বলেন, সেলিম প্রধান, খালেদ ভূঁইয়া, শামীম, ফিরোজরা সরকারে থাকা তাদের গডফাদারদের ইচ্ছাতেই টাকা পাচার করেছে। গডফাদার পৃষ্ঠপোষকদের কাছ থেকেই তারা দীক্ষা পেয়েছে। দুর্নীতি, অনাচার, আর অনিয়মে গা ভাসিয়ে দিয়েছে। ফলে দুই একটা ছোট মাছ ধরে এই সরকারের রোগ সারানো সম্ভব নয়। আইন শৃঙ্খলা বাহিনীর ক্যালকুলেটেড এই অভিযানেও টাকার স্তুপের যে ছবি দেখা গেছে তা এই মধ্যরাতের নির্বাচনের সরকারের আসল প্রতিচ্ছবি। সুতরাং নিরপেক্ষ ও সুুবিস্তৃত অভিযানে কত মনিমানিক্য ও স্বর্ণখনি পাওয়া যেতো তা সহজেই অনুমান করা যায়। রিজভী বলেন, আমরা এতোদিন বলে আসছিলাম দুর্নীতি ও ক্যাসিনো বিরোধী এই তথাকথিত অভিযানের অন্যতম লক্ষ্য বিএনপি এবং আগামী দিনের রাষ্ট্রনায়ক ও জনগণের প্রাণপ্রিয় নেতা জনাব তারেক রহমান। সেই থলের বিড়ালটা এবার বের করলো। সেটাই আওয়ামী মন্ত্রী-নেতারা ব্রিফিংয়ে স্পষ্ট করলো। আওয়ামী লীগ অসততা ও নীতি পঙ্গুত্বতায় ভুগছে বলেই নিজেদের কালিমা অন্যের ঘাড়ে চাপিয়ে আত্মতৃপ্তি লাভ করতে চাচ্ছে। এখন আওয়ামী লীগের কতিপয় দলদাস পত্রিকা ও মিডিয়া জনাব তারেক রহমানকে ক্যাসিনোর সাথে যুক্ত করতে কাছা মেরে সপ্তসুরে প্রপাগান্ডা চালাচ্ছে। রিজভী আরো বলেন,আইন শৃঙ্খলা রক্ষাকারী বাহিনী ব্রিফিংয়ে বলেছেন, সেলিম প্রধান এককালে মামুনের ঘনিষ্ঠ ছিলেন। সেটিতো এক যুগ আগের কথা। মামুনের সাথে ছাড়াছাড়ি হওয়ার পর গত এক দশক ধরে সেলিম প্রধান কার সাথে সংসার করে অনলাইন ক্যাসিনোর ডন হয়েছে তাতো র‌্যাব বললো না। বর্তমানে সেলিম প্রধানের কোন কোন নেতা ঘনিষ্ঠ তা কোন গণমাধ্যমে দেখলাম না। কোন কোন নেতা তার গডফাদার তা তো বললেন না ? সেলিমের আগের সংসারে কি হয়েছে তাই নিয়েই চলছে টানাটানি-যার কোন বাস্তব ভিত্তি নেই।

কেবল সেলিম প্রধানই নয়, যাদের এ পর্যন্ত আটক করা হয়েছে সবাই নাকি এক দশক আগে ছিলেন বিএনপির লোক। সেই সময় তারা কি করেছে সেই কিচ্ছাই চলছে দলদাস মিডিয়াগুলোতে। গত বারো বছর তারা যে আওয়ামী লীগের গডফাদারের মাধ্যমে হরিলুট করেছে তার কাহিনী কই? আর এখন জনগণের টাকায় পরিচালিত আইন শৃঙ্খলা রক্ষাকারী বাহিনীকেও নামানো হয়েছে বিএনপি ও জনাব তারেক রহমানের চরিত্র হননের অপপ্রচারণায়।

মিরপুরে ২৭টি পূজা মন্দিরে উপজেলা চেয়ারম্যানের নগদ অর্থ বিতরন

আমলা অফিস ॥ শারদীয় দুর্গোউৎসব উপলক্ষে মিরপুর উপজেলার ২৭টি পূজা মন্দিরে আর্থিক সহায়তা প্রদান করেছেন মিরপুর উপজেলা পরিষদের চেয়ারম্যান ও উপজেলা আওয়ামী লীগের সাধারন সম্পাদক কামারুল আরেফিন। সেই সাথে শান্তিপূর্ণভাবে শারদীয় উৎসব উদযাপন উপলক্ষে মন্দির ও পূজা কমিটির নেতৃবৃন্দদের সাথে মতবিনিময় করেন। গতকাল বুধবার সকালে উপজেলা চেয়ারম্যানের কার্যালয়ে উপজেলা পূজা মন্দিরগুলোর সভাপতি ও সম্পাদকের হাতে এ সহযোগিতা তুলে দেন তিনি। এসময় উপস্থিত ছিলেন উপজেলা ভাইস চেয়ারম্যান আবুল কাশেম জোয়ার্দ্দার, উপজেলা পূজা উদযাপন পরিষদের সভাপতি বিশ্বজীৎ বিশ্বাস, সাধারন সম্পাদক শুকেশ রঞ্জন পাল, মিরপুর প্রেসক্লাবের সহ-সভাপতি কাঞ্চন কুমার, উপজেলা প্রকল্প বাস্তবায়ন কর্মকর্তা আব্দুল কায়ূম, খাদ্য কর্মকর্তা ইসরাত জাহান, বহলবাড়ীয়া ইউনিয়ন পরিষদের চেয়ারম্যান সোহেল রানা বিশ্বাস, উপজেলা পূজা উদযাপন পরিষদের কোষাধ্যক্ষ অজূন কুমারসহ উপজেলার সকল পূজা মন্দিরের সভাপতি ও সাধারন সম্পাদকগণ।

জি কে শামীম আরও ৯ দিনের রিমান্ডে

ঢাকা অফিস ॥ অস্ত্র ও মুদ্রা পাচার আইনের দুই মামলায় ঠিকাদার গোলাম কিবরিয়া শামীম ওরফে জি কে শামীমকে জিজ্ঞাসাবাদের জন্য আরও ৯ দিনের রিমান্ডে পাঠিয়েছে আদালত। ঢাকার মহানগর হাকিম মোহাম্মদ জসিম গতকাল বুধবার এই রিমান্ড মঞ্জুর করেন। অস্ত্র ও মাদক আইনের দুই মামলায় ১০ দিনের রিমান্ড শেষে জি কে শামীমকে এদিন আদালতে হাজির করা হয়। এরপর তাকে অস্ত্র মামলায় আরও সাতদিন এবং মানি লন্ডারিং মামলায় ১০ দিনের রিমান্ডে নিয়ে জিজ্ঞাসাবাদের অনুমতি চাওয়া হয় পুলিশের পক্ষ থেকে। শুনানি শেষে বিচারক অস্ত্র মামলায় চার দিন এবং মুদ্রা পাচার আইনের মামলায় পাঁচ দিনের রিমান্ড মঞ্জুর করেন। যুবলীগ নেতা পরিচয় দিয়ে ঠিকাদারি চালিয়ে আসা শামীম রাজধানীর সবুজবাগ, বাসাবো, মতিঝিলসহ বিভিন্ন এলাকায় প্রভাবশালী হিসেবে পরিচিত। গণপূর্ত ভবনে ঠিকাদারি কাজে তার দাপটের খবর সংবাদ মাধ্যমের শিরোনাম হয়েছে। ঢাকার বিভিন্ন ক্লাবে ক্যাসিনো-জুয়াবিরোধী অভিযানের মধ্যে গত ২০ সেপ্টেম্বর গুলশানের নিকেতনে শামীমের ব্যবসা প্রতিষ্ঠানে অভিযান চালিয়ে নগদ প্রায় দুই কোটি টাকা, পৌনে দুইশ কোটি টাকার এফডিআর, আগ্নেয়াস্ত্র ও মদ পাওয়ার কথা জানায় র‌্যাব। তখন শামীম ও তার সাত দেহরক্ষীকে গ্রেপ্তার করা হয়। পরদিন শামীম ও তার দেহরক্ষীদের গুলশান থানায় হস্তান্তর করে তাদের বিরুদ্ধে অস্ত্র ও মাদক আইন এবং মানিলন্ডারিং আইনে তিনটি মামলা দেয় র‌্যাব। ওই দিন শামীমকে আদালতে হাজির করে অস্ত্র ও মাদক মামলায় ১৪ দিনের রিমান্ড আবেদন করা হয়। দুই মামলায় পাঁচ দিন করে তার ১০ দিনের রিমান্ড মঞ্জুর করে আদালত। অন্যদিকে পুলিশের আবেদনে অস্ত্র মামলায় শামীমের দেহরক্ষীদের চার দিনের রিমান্ডে পাঠানো হয়। মঙ্গলবার মুদ্রাপাচার আইনের মামলাতেও তাদের চার দিনের রিমান্ডে মঞ্জুর করে আদালত। আইন অনুযায়ী সিআইডি মুদ্রাপাচার মামলার তদন্ত করবে বলে সে সময় পুলিশের পক্ষ থেকে আগেই জানানো হয়েছিল।

হালসা মাধ্যমিক বিদ্যালয়ে ম্যানেজিং কমিটি নির্বাচন সম্পন্ন

নিজ সংবাদ ॥ সকল জল্পনা-কল্পনার অবসান ঘটিয়ে অবশেষে সুষ্ঠু ও উৎসবমূখর পরিবেশের মধ্যদিয়ে কুষ্টিয়ার মিরপুর উপজেলার ঐতিহ্যবাহী শিক্ষা প্রতিষ্ঠান হালসা মাধ্যমিক বিদ্যালয় ম্যানেজিং কমিটি (অভিভাবক সদস্য পদে) নির্বাচন সম্পন্ন হয়েছে। গতকাল বুধবার সকাল ১০টা থেকে বিকেল ৪টা পর্যন্ত একটানা ভোট গ্রহণ চলে ৷ ভোট প্রয়োগ শেষে ফলাফল জানতে হাজারো উৎসুক জনতার উপস্থিতি আনন্দ ও উৎসবমূখরে ভরে উঠেছিলো৷ ভোট গণনা শেষ হলে প্রিজাইডিং অফিসারের দায়িত্বে থাকা মিরপুর উপজেলা মাধ্যমিক শিক্ষা অফিসার জুলফিকার হায়দার ফলাফল  ঘোষণা করেন ৷ ফলাফলে ৯ নম্বর প্রতীক নিয়ে সর্ব্বোচ্চ ৭৭৫ ভোট পেয়ে প্রথম স্থান অধিকার করেছেন মোঃ রফিকুল ইসলাম বাবু ৷ পর্যায়ক্রমে ৬০৮ ভোট পেয়ে মোঃ ছানা উল্লাহ দ্বিতীয়, ৪৬৬ ভোট পেয়ে মোঃ নিজাম উদ্দিন তৃতীয় ও ৪৬৪ ভোট পেয়ে শ্রী জোগেস কুমার ঘোষ চতুর্থ স্থান অধিকার করে নির্বাচিত হন ৷

বিদ্যালয়ের প্রধান শিক্ষক আব্দুস ছালামের সূত্রে জানা যায়, ম্যানেজিং কমিটির নির্বাচনে মোট অভিভাবক ভোটার ১৫৮৮ জন ৷ ৪ টি বুথে ভোট প্রয়োগ হয়েছে ১৩৬৭ টি ৷ শান্তি ও আইন-শৃঙ্খলা বজায় রাখতে সকাল থেকেই হালসা মাধ্যমিক বিদ্যালয়ে মিরপুর থানা ও স্থানীয় হালসা ক্যাম্প থেকে পর্যাপ্ত পুলিশ মোতায়ন ছিলো ৷ ভোট কেন্দ্র পরিদর্শন করেন কুষ্টিয়ার সহকারী কমিশনার ও নির্বাহী ম্যাজিষ্ট্রেট সবুজ কুমার বসাক, মিরপুর থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) আবুল কালাম, আমবাড়ীয়া ইউপি চেয়ারম্যান মশিউর রহমান মিলন, সাবেক চেয়ারম্যান ও ইউনিয়ন আওয়ামী লীগের সভাপতি আব্দুল বারী টুটুল, সাধারণ সম্পাদক আশরাফুল আলম মিলন  চৌধুরী, মিরপুর উপজেলা কৃষকলীগের যুগ্ম-সাধারণ সম্পাদক মোশারফ হোসেন মুসা, পাটিকাবাড়ী ইউনিয়ন আওয়ামী লীগের সভাপতি সাইদুর রহমান বিশ্বাস, সাধারণ সম্পাদক ও ইউপি চেয়ারম্যান সফর উদ্দিন ৷ ভোট কেন্দ্র পরিদর্শন শেষে কুষ্টিয়া সহকারী কমিশনার ও নির্বাহী ম্যাজিষ্ট্রেট সবুজ কুমার বসাক বলেন পূর্বে আমি কখনই বিদ্যালয়ে অভিভাবক সদস্যর ভোটে এমন জাকজমক পূর্ণ হতে দেখিনাই ৷ হালসা মাধ্যমিক বিদ্যালয়ে উৎসবমূখর পরিবেশের মধ্যদিয়ে অত্যন্ত সুন্দর সুষ্ঠু ও শান্তিপূর্ণভাবে নির্বাচন অনুষ্ঠিত হচ্ছে বলে তিনি সন্তুষ্ট প্রকাশ করেন ৷ হালসা মাধ্যমিক বিদ্যালয়ে ম্যানেজিং কমিটির নির্বাচনে মোট দশজন সদস্য পদে পদপ্রার্থী ছিলেন ৷ পর্যায়ক্রমে ১) মোঃ আমিরুল ইসলাম, ২) মোঃ এনামুল হক, ৩) মোঃ ছানাউল্লাহ, ৪) জোগেস কুমার ঘোষ, ৫) মোঃ নওশাদ আলী, ৬)  মোঃ নিজাম উদ্দিন, ৭) মোছাঃ ফিরোজা বেগম, ৮)  মোঃ ররিকুল ইসলাম বাবু, ৯) খন্দকার মোঃ শহিদুল ইসলাম ও ১০) সেলিম খান ৷

দৌলতপুর দুর্নীতি প্রতিরোধ কমিটির আয়োজনে বিতর্ক প্রতিযোগিতা অনুষ্ঠিত

দৌলতপুর প্রতিনিধি ॥ কুষ্টিয়ার দৌলতপুর দুর্নীতি প্রতিরোধ কমিটির আয়োজনে বিতর্ক প্রতিযোগিতা অনুষ্ঠিত হয়েছে। গতকাল বুধবার বেলা ১১টায় নবগ্রাম মাধ্যমিক বিদ্যালয় মিলনায়তনে এ প্রতিযোগিতা অনুষ্ঠিত হয়। বিতর্ক প্রতিযোগিতা অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথি ছিলেন কুষ্টিয়া জেলা শিক্ষা অফিসার মো. জায়েদুর রহমান। দৌলতপুর দুর্নীতি প্রতিরোধ কমিটির সভাপতি আলহাজ¦ নজরুল ইসলামের সভাপতিত্বে অনুষ্ঠানে বিশেষ অতিথি ছিলেন দৌলতপুর উপজেলা মাধ্যমিক শিক্ষা অফিসার সর্দার মোহম্মদ আবু সালেক, জেলা পরিষদের সদস্য সাবেক প্রধান শিক্ষক মো. নাসির উদ্দিন, রামকৃষ্ণপুর ইউপি চেয়ারম্যান সিরাজ মন্ডল, বিডিএস মাধ্যমিক বিদ্যালয়ের প্রধান শিক্ষক মো. ইয়াকুব আলী ও নবগ্রাম মাধ্যমিক বিদ্যালয়ের প্রধান শিক্ষক মো. নাহারুল ইসলাম। উপস্থিত ছিলেন দৌলতপুর দুর্নীতি প্রতিরোধ কমিটির সাধারণ সম্পাদক উপাধ্যক্ষ আবু সাঈদ মো. আজমল হোসেন। ‘অভাব নয়, সীমাহীন লোভই দুর্নীতির প্রধান কারণ’ বিতর্কের বিষয়ের পক্ষে অবস্থান নেয় বিডিএস মাধ্যমিক বিদ্যালয়। বিপক্ষে অবস্থান নেয় নবগ্রাম মাধ্যমিক বিদ্যালয়। পক্ষের দল বিজয়ী হয় এবং শ্রেষ্ঠ বক্তা হয় বিজয়ী দলের দলনেতা আন্না মারিয়া ফাল্গুনী। শেষে উভয় দলের শিক্ষার্থীদের হাতে পুরস্কার তুলে দেন অনুষ্ঠানের প্রধান অতিথিসহ অন্যান্য অতিথিবৃন্দ।

দুর্নীতি বন্ধের দাবীতে কুষ্টিয়ায় বিজেসি’র মানববন্ধন

নিজ সংবাদ ॥ ক্যাসিনো, জুয়া, ঘুষ দুর্নীতি, মাদক, সন্ত্রাস, চাঁদাবাজী, টেনডারবাজী, ইফটেজিং, খুন, ধর্ষন, হত্যা ও বাল্য বিবাহ নিপাত যাক এই প্রতিপাদ্য বিষয়ে কুষ্টিয়ায় বেঙ্গল জাতীয় কংগ্রেস (বিজেসি) মানববন্ধন করছে। গতকাল বুধবার বিকেলে বিজেসি’র কুষ্টিয়া জেলা শাখার উদ্যোগে কুষ্টিয়া-মেহেরপুর মহাসড়কের আমলা বাজারে এ মানববন্ধন অনুষ্ঠিত হয়। এসময় অন্যান্যদের মধ্যে বক্তব্য রাখেন কেন্দ্রীয় বিজেসি’র সাধারন সম্পাদক বীর মুক্তিযোদ্ধা মারফত আলী মাস্টার। তিনি বলেন, ঢাকাসহ বড় বড় শহর ও গ্রাম-গঞ্জের ক্যাসিনোর (জুয়ার) ও মদের আসর বন্ধে প্রয়োজনীয় পদক্ষেপ নিন। দুর্নীতি ও টাকা পাচার রুখে দেয়ার পদক্ষেপ নিন। দুর্নীতির বিরুদ্ধে কঠোর অবস্থান নিন। দেশ ও জাতির স্বার্থে জাতীয় সম্পদ লুটপাটের বিরুদ্ধে আপনি যে অভিযান পরিচালনা করছেন তাকে আমরা স্বাগত জানাচ্ছি। প্রতি বছর এ সকল অপকর্মে দেশের যে টাকা খরচ হয় তা দিয়ে পর্যায়ক্রমে সারা বাংলাদেশের বস্তিবাসীদের পুনর্বাসন সম্ভব। গরীব ও মেহনতি মানুষের কল্যাণে আপনি এ অভিযান থেকে পিছু হটবেন না। সারাদেশের মানুষ আজ দিশেহারা এ সকল অবৈধ কর্মকান্ডে। জাতি এমন অস্বাস্থ্যকর পরিবেশ থেকে মুক্তি চায়। বাংলার মানুষ বাঁচতে চায়। বাংলার মানুষ অর্থনৈতিক মুক্তি চায়। বেঙ্গল জাতীয় কংগ্রেস- বিজেসি জুয়া, মদ, দুর্নীতি ও টাকা পাচার বন্ধে সরকারের কার্যকর পদক্ষেপ চায়। পর্যটকদের জন্যও ক্যাসিনোর (জুয়ার) ও মদের আসর ঢালাওভাবে খুলে দেয়া যাবেনা। এসময় আরো বক্তব্য রাখেন আমলাসদরপুর মাধ্যমিক বিদ্যালয়ের প্রাক্তন প্রধান শিক্ষক মকবুল হোসেন বিশ্বাস, সমাজসেবক আশমত আলী, বাংলাদেশ ছাত্রলীগ (জাসদ) সাবেক ছাত্র নেতা ইয়াছিন আলী প্রমুখ।

খালেদার বিদেশ যাত্রায় অনেক ‘যদি’ দেখছেন কাদের

ঢাকা অফিস ॥ আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক ওবায়দুর কাদের বলেছেন, দুর্নীতি মামলায় কারাবন্দি খালেদা জিয়া জামিন পেলে যে উন্নত চিকিৎসার জন্য বিদেশে যেতে চান, সে বিষয়টি প্রধানমন্ত্রীকে জানানো হয়েছে। তবে প্রতিটি বিষয় ‘যদির মধ্যে’ আটকে যাচ্ছে মন্তব্য করে তিনি বলেছেন, জামিন পেলে চিকিৎসকরা যদি খালেদাকে বিদেশে নেওয়ার পরামর্শ দেন, তখনই সরকার বিষয়টি দেখবে। বুধবার সচিবালয়ে সমসাময়িক বিষয় নিয়ে এক সংবাদ সম্মেলনে সাংবাদিকদের প্রশ্নে কাদেরের এই মন্তব্য আসে। তিনি বলেন, খালেদা জিয়ার সঙ্গে সরকারের ‘কোনো শত্রুতা নেই’। দুর্নীতির দুই মামলায় দন্ড নিয়ে সাবেক প্রধানমন্ত্রী খালেদা জিয়া গত বছরের ফেব্র“য়ারি থেকে কারাগারে রয়েছেন। ৭৪ বছর বয়সী খালেদাকে চিকিৎসার জন্য গত ১ এপ্রিল থেকে রাখা হয়েছে বঙ্গবন্ধু শেষ মুজিব মেডিকেল বিশ্ববিদ্যালয় (বিএসএমএমইউ) হাসপাতালে। বিএনপির যুগ্ম মহাসচিব সংসদ সদস্য হারুনুর রশীদ মঙ্গলবার হাসপাতালে গিয়ে তার দলের নেত্রীর সঙ্গে কথা বলে আসেন। পরে তিনি সাংবাদিকদের বলেন, জামিন পেলে খালেদা জিয়া উন্নত চিকিৎসার জন্য বিদেশে যাবেন। সুপ্রিম কোর্ট ও নিম্ন আদালত মিলে খালেদার বিরুদ্ধে এখন ১৭টি মামলা বিচারাধীন। এর মধ্যে দুটি মামলায় (জিয়া এতিমখানা ট্রাস্ট ও জিয়া দাতব্য ট্রাস্ট দুর্নীতি মামলা) জামিন পেলেই তিনি কারাগার থেকে মুক্তি পেতে পারেন বলে তার আইনজীবীদের ভাষ্য। বুধবারের সংবাদ সম্মেলনে সাংবাদিকরা ওবায়দুল কাদেরের কাছে জানতে চেয়েছিলেন, খালেদা জিয়ার জামিনের বিষয়ে সরকার কোনো উদ্যেগ নেবে কিনা। উত্তরে আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক বলেন, “যে সংসদ সদস্য এ কথা বলেছেন, তিনি আমার সাথে দেখা করেও এ কথা বলেছেন কয়েকদিন আগে… বেগম জিয়াকে ঘিরে তাদের অভিপ্রায়ের কথা, জামিন পেলে তিনি বিদেশে যাবেন।” হারুনুর রশীদ এ বিষয়টি প্রধানমন্ত্রীকে বলতে অনুরোধ করেছেন জানিয়ে ওবায়দুল কাদের বলেন, “সেটা আমি জানিয়েছি। কিন্তু প্রশ্ন হচ্ছে তিনি জামিন পাবেন কিনা সেটা আদালতের বিষয়। সরকার আদালতকে কীভাবে বলবে যে জামিন দিয়ে দেবেন? এটা কি বলা উচিত? তাহলে বিচার ব্যবস্থার প্রতি সরকারের হস্তক্ষেপ হবে। “উনি যদি জামিন পান এবং চিকিৎসকরা যদি মনে করেন তার বিদেশে গিয়ে চিকিৎসা করা দরকার, সেটা তারা বলতে পারেন। সে ধরনের কোনো রিপোর্ট পেলে, চিকিৎসকদের পরামর্শ থাকলে জানাতে পারেন। আদালতে জামিন দেওয়ার বিষয়ে সরকার বলতে পারে না। এটি আদালতের উপর ছেড়ে দিন।” সরকার খালেদাকে বিদেশে যাওয়ার বিষয়ে কোনো সহযোগিতা করবে কিনা জানতে চাইলে ওবায়দুল কাদের বলেন, “বেগম জিয়ার সাথে আমাদের তো কোনো শক্রতা নেই, তিনি যদি জামিন পান, জামিন পেলে চিকিৎসকরা বিদেশ যাওয়ার ব্যাপারে রিপোর্ট দেন তখন দেখা যাবে।” জামিনের বাইরে বিকল্প ব্যবস্থায় খালেদা জিয়ার বিদেশে যাওয়ার কোনো আলোচনা হয়েছে কিনা- এ প্রশ্নে কাদের বলেন, “সংসদ সদস্য হারুন শুধু জামিনের কথা বলেছেন, নেত্রীকে জানাতে বলেছেন। সে তো আন্তরিকভাবে বলেছে, বেগম জিয়ারও ইচ্ছা থাকতে পারে। বেগম জিয়ার সাথে আলোচনা করেই আমার সাথে আলোচনা করেছে। “আমি প্রধানমন্ত্রীকে জানিয়েছি, প্রধানমন্ত্রী আদালতের বিষয় বলেছেন। আদালদের জামিন বিষয়টা মূল। বলেছেন, আদালতে জামিন না হলে কীভাবে দেখব?” বিএনপির যুগ্ম মহাসচিব হারুনুর রশীদ নিজেও এ বিষয়ে প্রধানমন্ত্রীর সঙ্গে কথা বলেছেন বলে জানান কাদের। বিএনপির যে নেতারা আন্দোলন করে খালেদা জিয়াকে মুক্ত করার কথা বলছেন, তাদের সমালোচনাও করেন আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক। তিনি বলেন, “আন্দোলনের ছোট ঢেউও তো দেখছি না। আন্দোলন করে বের করুক… তারা যখন এত বড় দল।”

অনুরোধ প্রধানমন্ত্রীকে

খালেদাকে দেখে যান, জামিনের ব্যবস্থা করুন 

ঢাকা অফিস ॥ বিএনপির চারজন সংসদ সদস্য খালেদা জিয়ার সঙ্গে দেখা করে তার জামিনে মুক্তির জন্য প্রধানমন্ত্রীকে পদক্ষেপ নেওয়ার অনুরোধ করলেন। জামিনের বিষয়টি আদালতের এখতিয়ার হলেও তারা বলছেন, তাদের নেত্রী ‘রাজনৈতিক বন্দি’, ফলে তার মুক্তি রাজনৈতিক সিদ্ধান্তে হবে বলে মনে করছেন তারা। সেজন্যই প্রধানমন্ত্রীর হস্তক্ষেপ চাইছেন তারা। গতকাল বুধবার বিকালে বিএসএমএমইউতে বিএনপি চেয়ারপারসনকে দেখতে যান দলটির চার এমপি জি এম সিরাজ, মোশাররফ হোসেন, জাহিদুর রহমান জাহিদ ও রুমিন ফারহানা। তারা ঘণ্টাখানেক ছিলেন দলীয় নেত্রীর কেবিনে। একাদশ সংসদে বিএনপির বাকি তিন সদস্য হারুনুর রশীদ, উকিল আব্দুস সাত্তার ও আমিনুল ইসলাম একদিন আগেই খালেদার সঙ্গে দেখা করে সাংবাদিকদের বলেছিলেন, জামিন পেলেই চিকিৎসার জন্য বিদেশ যাবেন তাদের নেত্রী। দুর্নীতির দুই মামলায় দন্ড নিয়ে গত বছরের ফেব্র“য়ারি থেকে কারাবন্দি ৭৫ বছর বয়সী খালেদা। চিকিৎসার জন্য গত এপ্রিল থেকে তিনি রয়েছেন বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিব মেডিকেল বিশ্ববিদ্যালয় (বিএসএমএমইউ) হাসপাতালে। সরকারের নির্বাহী আদেশে অর্থাৎ প্যারোলে মুক্তি নিয়ে খালেদা চিকিৎসার জন্য যুক্তরাজ্যে যাচ্ছেন বলে কিছু দিন আগে সংবাদপত্রে খবর বের হলেও বিএনপি তা নাকচ করেছিল। আর সরকারের পক্ষ থেকে বলা হচ্ছিল, প্যারোলের আবেদন পেলে বিবেচনা করবেন তারা। তার মধ্যেই মঙ্গলবার খালেদাকে দেখে এসে বিএনপির সংসদ সদস্য হারুন বলেন, প্যারোল নয়, তারা জামিনে খালেদার মুক্তির আশা করছেন। তার একদিন পর দলীয় নেত্রীকে দেখে এসে বিএনপির বাকি সংসদ সদস্যরা জামিনের ক্ষেত্রে প্রধানমন্ত্রীর হস্তক্ষেপ চাইলেন। খালেদার বগুড়ার আসনের বর্তমান এমপি জি এম সিরাজ সাংবাদিকদের বলেন, “আমরা সাতজন সংসদ সদস্য সংসদ নেতা মাননীয় প্রধানমন্ত্রীর কাছে বলতে চাই, আপনি নিজে একবার আসুন, আপনি দেখে যান। “আমি নিশ্চিত, আমরা নিশ্চিত- আপনি যদি নিজে এসে দেখে যান আমাদের তিন-তিন বারের প্রধানমন্ত্রী বেগম খালেদা জিয়াকে। আপনার মানবিকতাবোধ জাগ্রত হবে, আপনার মায়া হবে। “সংসদ নেতা ও মাননীয় প্রধানমন্ত্রী হিসেবে আপনার কাছে আমাদের সবিনয় অনুরোধ, আপনি আমাদের ম্যাডাম জিয়ার জামিনের জন্য পদক্ষেপ গ্রহণ করুন। আপনি আমলাতান্ত্রিক পরামর্শ না নিয়ে দয়া করে রাজনৈতিক দূরদর্শিতায় আমাদের নেত্রীকে ছেড়ে দিন, জামিনের ব্যবস্থা করে দিন।” সুপ্রিম কোর্ট ও নিম্ন আদালত মিলে খালেদার বিরুদ্ধে এখন ১৭টি মামলা বিচারাধীন। এর মধ্যে দুটি মামলায় (জিয়া এতিমখানা ট্রাস্ট ও জিয়া দাতব্য ট্রাস্ট দুর্নীতি মামলা) জামিন পেলেই তিনি কারাগার থেকে মুক্তি পেতে পারেন বলে তার আইনজীবীদের ভাষ্য।  খালেদা জিয়ার জামিন সরকার আটকে রেখেছে বলে বিএনপি অভিযোগ করে এলেও ক্ষমতাসীন আওয়ামী লীগ নেতারা বলে আসছেন, জামিনের বিষয়টি পুরোপুরি আদালতের এখতিয়ার, এক্ষেত্রে সরকারের কিছু করার নেই। আওয়ামী লীগের সাধারণ ওবায়দুল কাদেরের এরকম বক্তব্যের প্রতি দৃষ্টি আকর্ষণ করা হলে জিএম সিরাজ বলেন, “রাজনৈতিক সিদ্ধান্ত ছাড়া কি ম্যাডামের মুক্তি হবে? আজকে আমাদের সুপ্রিম কোর্ট, হাই কোর্ট বিব্রতবোধ করেন তার জামিনের বিষয়ে। “আমাদের নেত্রী রাজনৈতিক বন্দি। আমরা বিশ্বাস করি, এখানে রাজনৈতিক সিদ্ধান্ত দরকার। রাজনৈতিক সিদ্ধান্ত ছাড়া ম্যাডামের মুক্তি হবে না।” খালেদা জিয়া প্যারোলে মুক্তি চান না বলে জানান সংসদ সদস্য রুমিন ফারহানা। সাংবাদিকদের প্রশ্নে তিনি বলেন, “আমি সরাসরি প্যারোলের বিষয়ে ম্যাডামকে বলেছিলাম। ম্যাডাম আমাকে বলেছেন, ‘জামিন আমার হক, দেশের আইন অনুযায়ী আমি এখনই জামিন লাভের যোগ্য, কোনো রকমের কোনো অপরাধ আমি করিনি, সুতরাং এখানে প্যারোলের প্রশ্ন কেনো আসবে?’ “প্যারোলে কোনো প্রশ্নই আমাদের তরফ থেকে তোলা হয়নি। আমি ব্যারিস্টার রফিকুল হকের সাথে দীর্ঘকাল কাজ করেছি, আমার আইনের উপর যে অভিজ্ঞতা, এই ধরনের মামলায় এডমিশনে বেইল হয়ে যায়। সেখানে এরকম শারীরিক অবস্থায় ১৮ মাস ধরে উনি কারাগারে বন্দি আছেন।” খালেদা জিয়ার সঙ্গে যখন তার পরিবারের সদস্যরাই সাক্ষাতের সুযোগ পাচ্ছেন না বলে অভিযোগ করা হচ্ছে, তখন আপনাদের কি সরকারই পাঠাচ্ছে দেখা করতে- এক সাংবাদিকের এই প্রশ্নে রুমিন বলেন, “একদমই না।” সাক্ষাতের বিষয়ে স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী আসাদুজ্জামান খাঁন কামালকে ধন্যবাদ জানিয়ে জিএম সিরাজ বলেন, “উনি খুব সজ্জন ব্যক্তি। উনার কাছে সাক্ষাতের জন্য বলেছিলাম, উনি ব্যবস্থা করে দিয়েছেন। একসাথে চারজনের বেশি যাওয়ার বিধান নাই। সেজন্য দুই দফায় আমরা সাতজন নেত্রীর সাথে সাক্ষাত করেছি।” আপনারা কি সমঝোতার কোনো বার্তা নিয়ে গিয়েছিলেন- এই প্রশ্নে জিএম সিরাজ বলেন, “আমরা নেগোসিয়েশনের বার্তার কোনো কথা জানি না।” খালেদা জিয়া চিকিৎসার জন্য বিদেশে যাওয়ার বিষয়ে প্রশ্ন করা হলে তিনি বলেন, “চিকিৎসার ব্যাপারে ম্যাডামের বক্তব্য হল, তিনি তো বাংলাদেশেই বিশেষজ্ঞ ডাক্তারের চিকিৎসাই পাচ্ছেন না। বিদেশে চিকিৎসার প্রয়োজন হলে যাবেন। সেটা তো আমাদের সিদ্ধান্ত নয়। সেটা ম্যাডামের নিজস্ব সিদ্ধান্তের ব্যাপার এবং তার পরিবারের সিদ্ধান্তের ব্যাপার।” আগের দিন হারুন বলেছিলেন, জামিনে মুক্তি পাওয়ার  সঙ্গে সঙ্গেই চিকিৎসার জন্য বিদেশ যাবেন তার নেত্রী। জি এম সিরাজ বলেন, “আগে তো মুক্তির দরকার, আগে মুক্তির প্রয়োজন। বিদেশ তো পরের কথা। লাগলে যাবেন বিদেশে।” আগের দিন দেখে এসে হারুন বলেছিলেন, তার নেত্রী ‘চরম অসুস্থ’। রুমিন বলেন, “উনাকে পরিকল্পিতভাবে মৃত্যুর দিকে ঠেলে দেওয়া হচ্ছে। তার এই শারীরিক অবস্থার জন্য সরকার দায়ী। তার কোনো রকমের কোনো সুচিকিৎসা দেওয়া হচ্ছে না। তার অবস্থার যে অবনতি হয়েছে, তার জন্য সম্পূর্ণরূপে সরকার দায়ী।”

ছাত্রলীগ-যুবলীগের কমিটিতে মাদকাসক্তরা কোনো পদ পাবে না

ঢাকা অফিস ॥ আওয়ামী লীগের উপদেষ্টা পরিষদের অন্যতম সদস্য ও সাবেক শিল্পমন্ত্রী আমির হোসেন আমু বলেছেন, মাদকাসক্ত কাউকে দলের পদ দেয়া হবে না। ছাত্রলীগ ও যুবলীগের কমিটি করার আগে পদপ্রার্থীদের ব্যাপারে খোঁজ-খবর নেয়া হচ্ছে। তিনি বলেন, প্রধানমন্ত্রী মাদকের ব্যাপারে জিরো টলারেন্স ঘোষণা করেছেন। মাদক দুর্নীতির বিরুদ্ধে দলের কঠোর অবস্থান পরিষ্কার করে দিয়েছেন প্রধানমন্ত্রী। সুতরাং সুষ্ঠু ও সুস্থ পরিবেশ সৃষ্টি করতে হবে। গতকাল বুধবার ঝালকাঠির নলছিটিতে (নলছিটি পৌরসভার) আওয়ামী লীগের নতুন সদস্য সংগ্রহ ও পুরনো সদস্য নবায়ন কার্যক্রমের উদ্বোধনী অনুষ্ঠানে তিনি এ সব কথা বলেন। নলছিটি পৌরসভা মিলনায়তনে এ অনুষ্ঠানের আয়োজন করে উপজেলা আওয়ামী লীগ। বিএনপি-জামায়াত জোট সরকারের সময় আওয়ামী লীগের নেতাকর্মীদের ওপর নির্মম নির্যাতন করা হয়েছে দাবি করে সাবেক শিল্পমন্ত্রী বলেন, বিএনপির নির্যাতনের কারণে আওয়ামী লীগের নেতাকর্মীরা অনেকে পঙ্গুত্ববরণ করেছেন। সেই তুলনায় আওয়ামী লীগ ক্ষমতায় এসে তাদের গায়ে একটি টোকাও দেয়নি। আওয়ামী লীগ প্রতিহিংসার রাজনীতি করে না। উপজেলা আওয়ামী লীগের সভাপতি তছলিম উদ্দিন চৌধুরীর সভাপতিত্বে অনুষ্ঠানে অন্যদের মধ্যে বক্তব্য দেন জেলা আওয়ামী লীগের সভাপতি সরদার মো. শাহ আলম, সাধারণ সম্পাদক অ্যাডভোকেট খান সাইফুল্লাহ পনির ও নলছিটি উপজেলা পরিষদ চেয়ারম্যান সিদ্দিকুর রহমান প্রমুখ।

শৈলকুপায় স্কুল ছাত্রকে কুপিয়ে ও গলা কেটে হত্যা

শৈলকুপা প্রতিনিধি ॥ ঝিনাইদহের শৈলকুপায় জুয়েল (১৫) নামের এক স্কুল ছাত্রকে কুপিয়ে ও গলা কেটে হত্যা করেছে দূর্বৃত্তরা। গতকাল বুধবার রাত ৮টার দিকে উপজেলার কাঁচেরকোল ইউনিয়নের সাদেকপুর গ্রামে এ ঘটনা ঘটে। ঐ গ্রামের মাঠের একটি ধানক্ষেত থেকে তার মৃতদেহ উদ্ধার করে পুলিশ। নিহত জুয়েল হোসেন ওই গ্রামের নজরুল ইসলামের ছেলে। সে বেণীপুর মাধ্যমিক বিদ্যালয়ের ৮ম শ্রেণীর ছাত্র ছিল। শৈলকুপা থানার ওসি বজলুর রহমান জানান, সন্ধ্যায় সাদেকপুর গ্রামের একটি ধানক্ষেতে অজ্ঞাত ব্যক্তির মৃতদেহ পড়ে থাকতে দেখে পুলিশে খবর দেয় এলাকাবাসী। পরে পুলিশ স্কুল ছাত্রের ক্ষত-বিক্ষত ও গলাকাটা মৃতদেহ উদ্ধার করে। মৃতদেহ উদ্ধারের ঘটনা জানা-জানি হলে পরিবারের লোকজন এসে তার পরিচয় শনাক্ত করে। তিনি আরও জানান, নিহতের গলা ও বুকে ধারালো অস্ত্রের আঘাতের চিহ্ন রয়েছে। ধারনা করা হচ্ছে সন্ধ্যার পর তাকে দুর্বৃত্তরা কুপিয়ে হত্যা করেছে। নিহতের মৃতদেহ ময়না তদন্তের জন্য ঝিনাইদহ সদর হাসপাতাল মর্গে পাঠানোর প্রস্তুতি চলছে। তবে কি কারণে বা কারা এ ঘটনা ঘটিয়েছে তা জানাতে পারেনি পুলিশ।

হরিনারায়ণপুরে আওয়ামীলীগের সম্মেলনে আতাউর রহমান আতা

দেশ ও জনগণের স্বার্থে দলের নেতাকর্মীদের কাজ করতে হবে

সুজন কর্মকার ॥ দেশ ও জনগণের স্বার্থে দলের নেতাকর্মীদের কাজ করার আহবান জানিয়েছেন, কুষ্টিয়া সদর উপজেলা পরিষদের চেয়ারম্যান ও শহর আওয়ামীলীগের সাধারণ সম্পাদক আতাউর রহমান আতা। কুষ্টিয়া সদর উপজেলার হরিনারায়ণপুর ইউনিয়নের ৭, ৮ ও ৯ নং ওয়ার্ড আওয়ামীলীগের ত্রি-বার্ষিক সম্মেলনে প্রধান অতিথির বক্তব্যে দলের নেতাকর্মীদের উদ্দেশ্যে তিনি এ আহবান জানান। গতকাল বুধবার বিকেলে কুষ্টিয়া সদর উপজেলার ৭১ নং পূর্ব আব্দালপুর সরকারী প্রাথমিক বিদ্যালয় প্রাঙ্গনে এ ত্রি-বার্ষিক সম্মেলন অনুষ্ঠিত হয়। প্রধান অতিথির বক্তব্যে কুষ্টিয়া সদর উপজেলা পরিষদের চেয়ারম্যান আতাউর রহমান আতা আরো বলেন, যেকোনো ধরনের অন্যায় দুর্নীতির বিরুদ্ধে কঠোর অবস্থানে আছেন মাননীয় প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা। কোন দুর্নীতিবাজ এই দলের নয়। দলের দোহাই দিয়ে কেউ ছাড় পাবে না। যে দুর্নীতিবাজ সে সমাজ ও দেশের চোখে অপরাধী। আর অপরাধীর কোন দল নেই। যে সন্ত্রাসী সে সমাজের চোখে অপরাধী। অপরাধীদের চিহ্নিত করা হচ্ছে এবং যাদের বিরুদ্ধে সুর্নিদিষ্ট অভিযোগ প্রমাণিত হবে তাদের বিরুদ্ধে কঠোর আইনি ব্যবস্থা নেয়া হবে। আতাউর রহমান আতা আরো বলেন, আমাদের নেত্রী প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা কষ্ট করে যে উন্নয়ন-সুনাম অর্জন করেছেন মুষ্টিমেয় কয়েকজনের জন্য তা ম্লান হতে দেয়া যাবে না। দুর্নীতির বিরুদ্ধে তিনি যুদ্ধ শুরু করেছেন, এ লড়াইয়ে আমাদের জিততে হবে। অপরাধী সে যেখানেই থাকুক না কেনো তাকে ধরা পরতেই হবে। হরিনারায়ণপুর ইউনিয়নের ৭, ৮ ও ৯ নং ওয়ার্ড আওয়ামীলীগের ত্রি-বার্ষিক সম্মেলনে প্রধান বক্তার বক্তব্য রাখেন, সদর উপজেলা আওয়ামীলীগের সাধারণ সম্পাদক আক্তারুজ্জামান বিশ্বাস। এতে সভাপতিত্ব করেন হরিনারায়ণপুর ইউনিয়ন আওয়ামীলীগের সভাপতি সরকার আক্তারুজ্জামান টগর। এ সময় কুষ্টিয়া জেলা মহিলা আওয়ামীলীগের সভাপতি জেবউন-নিসা সবুজ, শহর আওয়ামীলীগের যুগ্ম-সাধারণ সম্পাদক মীর রেজাউল ইসলাম বাবু, সাবেক ছাত্রনেতা সভাপতি সাইফুদ দৌলা তরুনসহ অন্যান্য নেতৃবৃন্দ উপস্থিত ছিলেন।