রোগ নির্ণয়ে নমুনা সংগ্রহ

দৌলতপুরে ছাতারপাড়ার দাঁড়পাড়া গ্রামে আইইডিসিআর’র প্রতিনিধি দল

দৌলতপুর প্রতিনিধি ॥ কুষ্টিয়ার দৌলতপুরের আলোচিত ছাতারপাড়ার দাঁড়পাড়া গ্রামে শিশুসহ ৪০ জন নারী-পুরুষ ডেঙ্গু রোগে আক্রান্তের ঘটনায় স্বাস্থ্য অধিদপ্তরের রোগতত্ত্ব, রোগনিয়ন্ত্রন ও গবেষণা ইনষ্টিটিউট (আইইডিসিআর) এর ৪ সদস্যের বিশেষজ্ঞ একটি প্রতিনিধি দল ওই গ্রামে গিয়েছেন। শুক্রবার বিকেলে তারা ঢাকা থেকে কুষ্টিয়ায় পৌঁছান। গতকাল শনিবার সকালে টীমের সদস্যরা উপজেলার আড়িয়া ইউনিয়নের ছাড়ারপাড়ার দাঁড়পাড়া গ্রামের এতো মানুষ ডেঙ্গুতে আক্রান্তের ঘটনার কারণ, এডিস মশা ও লার্ভা অনুসন্ধনের জন্য দিনভর আলামত সংগ্রহ করছেন। আজ রবিবারও ওই গ্রামে আলামত সংগ্রহের কাজ করবেন বলে জানা গেছে। এছাড়াও প্রতিনিধি দলের সদস্যরা আক্রান্ত রোগীদের কাছ থেকে তথ্য অনসুন্ধান করছেন। আইইডিসিআর এর এপিডেমিওলজি বিভাগের মেডিকেল অফিসার ডাঃ অনুপম সরকারের নেতৃত্বে প্রতিনিধি দলের অন্য সদস্যরা হলেন, মেডিকেল এপিডেমিওলজি ডাঃ দীপংকর দাস, স্যাম্পল কালেক্টর মাহবুব আলম খান ও ডাটা কালেক্টর শাহাদত হোসেন। ডাঃ অনুপম সরকার বলেন, এই গ্রামে কেন এতো বেশি সংখ্যাক রোগী সে বিষয়ে অনুসন্ধান ও কীটতত্ত্ব বিষয়ে নমুনা সংগ্রহ করা হবে। পরবর্তীতে ল্যাবরেটরিতে পরীক্ষার মাধ্যমে এর সঠিক কারন জানা যাবে। এদিকে শনিবার দাঁড়পাড়া গ্রাম থেকে আরো ১০ জনকে ডেঙ্গু সন্দেহে পরীক্ষার জন্য পাঠানো হয়েছে। শনিবারও উপজেলা প্রশাসনের পক্ষ থেকে ছাড়ারপাড়া ও এর আশপাশের গ্রামে পরিস্কার পরিচ্ছনতা অভিযান, এডিস মশা ও তার লার্ভা নিধনে ঔষধ স্প্রে এবং জনসচেতনতা মূলক কার্যক্রম চালানো হয়েছে। রোগীদের প্রয়োজনীয় চিকিৎসা ও ডেঙ্গু রোগী শনাক্তে স্থানীয় স্বাস্থ্য বিভাগ থেকে স্বাস্থ্যকর্মীদের সমন্বয়ে টিম কাজ করছেন।

শিশু নির্যাতনে বাবা-মাকেও আইনের অধীনে আনার সময় হয়েছে – বিচারপতি

ঢাকা অফিস ॥ শিশু নির্যাতনের জন্য বাবা-মাকেও আইনের অধীনে আনার পক্ষে মত জানিয়েছেন উচ্চ আদালতের বিচারপতি শেখ হাসান আরিফ। শিশু সুরক্ষায় উন্নত বিশ্বে এই ধরনের আইন থাকলেও বাংলাদেশে নেই; এখন তা প্রণয়নের সময় এসেছে বলে গতকাল শনিবার শিশু আইন নিয়ে এক আলোচনা অনুষ্ঠানে মত প্রকাশ করেন এই বিচারপতি। শিশু সন্তান নিয়ে মা-বাবার প্রচলিত দৃষ্টিভঙ্গি নিয়ে প্রশ্ন তুলে হাই কোর্টের এই বিচারক বলেন, “অনেক মা-বাবাই তার শিশু সন্তানটিকে সম্পত্তি মনে করেন। শাসনের নামে নির্যাতন করেন। কিন্তু সন্তান কখনও সম্পত্তি নয়। বিশ্বের অনেক দেশেই অভিভাবকদের এমন নির্যাতন আইন করে বন্ধ করা হয়েছে। আমাদের দেশের প্রচলিত আইনে শিশুর নিজেরই সুরক্ষা পাবার আইনগত অধিকার রয়েছে। এখন সময় এসেছে মা-বাবাকে আইনের মধ্যে নিয়ে আসার।” সুপ্রিম কোর্ট মিলনায়তনে ‘ডাইভারশন ফ্রম দ্য পুলিশ স্টেশন আন্ডার দ্য চিলড্রেন অ্যাক্ট ২০১৩’ শিরোনমে এ কর্মশালার আয়োজন করে শিশু অধিকার বিষয়ক সুপ্রিম কোর্টের বিশেষ কমিটি ও ইউনিসেফ। শিশুরা অপরাধ করলে তার বিচারের ক্ষেত্রেও প্রচলিত পদ্ধতি পরিবর্তনের উপর জোর দেন বিচারপতি হাসান আরিফ। তিনি বলেন, ‘শিশুদের ক্ষেত্রে রেস্টিটিউটিভ জাস্টিসকে (সংশোধনমূলক বিচার) বিবেচনায় নিতে হবে। অর্থাৎ শাস্তি না দিয়ে তাদের সংশোধনমূলক পন্থায় নিতে হবে।” কর্মশালায় প্রধান অতিথি ছিলেন সুপ্রিম কোর্টের আপিল বিভাগের বিচারপতি ও সুপ্রিম কোর্ট স্পেশাল কমিটি ফর চাইল্ড রাইটস (এসসিএসসিসিআর)’র চেয়ারপারসন মোহাম্মদ ইমান আলী। তিনি বলেন, “শিশুরা ক্রাইম করার প্রবণতা নিয়ে জন্মায় না। ক্রিমিনাল (অপরাধী) হয়ে জন্মায় না। পারিপার্শ্বিক অবস্থার কারণে তারা ক্রাইমে জড়িয়ে যায়। এর জন্য দায়ী কে, সেটাও আমাদের চিন্তা করতে হবে। “অনেক সময় মা-বাবার সঠিক পরিচর্যার অভাবে শিশু খারাপ পথে চলে যায়। তাই শিশুকে কোর্ট-কাচারিতে পাঠানো সমীচীন নয়, বিকল্প পন্থায় তাদের বিষয়ে পদক্ষেপ নেওয়া উচিৎ।” নিউজিল্যান্ডের শিশু আদালতে বিচার পর্যবেক্ষণের অভিজ্ঞতা তুলে ধরে আপিল বিভাগের এ বিচারক বলেন, সে দেশে থানা থেকেই ৭০-৭৫ শতাংশ শিশুকে  মামলা থেকে বাদ দিয়ে দেওয়া হয়। আর যে  ২৫ শতাংশ থাকে তাদের থেকে আবার ১০-১৫ শতাংশ শিশুকে ডাইভারশনের (বিকল্প পন্থায়) মাধ্যমে অব্যাহতি দেওয়া হয়। শিশুদের নিয়ে কাজ করার ক্ষেত্রে সংবেদনশীলতার গুরুত্ব তুলে ধরে পুলিশ ও সমাজসেবা কর্মকর্তাদের সতর্ক থাকার পরামর্শ দেন বিচারপতি ঈমান আলী। তিনি বলেন, “আমরা সবাই জানি শিশুরা নিষ্পাপ হয়, অবুঝ হয়। সবসময় ঠিক চিন্তাভাবনা করে কোনো কাজ তারা করে না। এই কথাগুলো আমাদের মনে রাখতে হবে। খারাপ পথে গেলে শিশুদেরকে কিভাবে ভাল পথে নিয়ে আসা যায়, সে অনুযায়ী কাজ করতে হবে। আর প্রবেশন অফিসার ও শিশুদের নিয়ে কাজ করা পুলিশ সদস্যদের মধ্যে যোগাযোগ বাড়াতে হবে।” কর্মশালায় আরও বক্তব্য দেন হাই কোর্ট বিভাগের বিচারপতি খিজির আহমেদ চৌধুরী, ঢাকা মহানগর পুলিশের ডেপুটি পুলিশ কমিশনার ফরিদা ইয়াসমিন, সমাজসেবা অধিদপ্তরের পরিচালক (ইনস্টিটিউশন) মো. আবু মাসুদ, ইউনিসেফ বাংলাদেশের শিশু সুরক্ষা বিশেষজ্ঞ শাবনাজ জাহেরীন।

ঝিনাইদহে সড়ক দুর্ঘটনায় সেনা সদস্য কুষ্টিয়ার হাবিবুর নিহত

ঝিনাইদহ প্রতিনিধি ॥ ঝিনাইদহের কালীগঞ্জ উপজেলা মুক্তিযোদ্ধা কমপ্লেক্সের সামনে সড়ক দুর্ঘটনায় মোঃ হাবিবুর রহমান (২৬) নামে এক সেনা সদস্য নিহত হয়েছেন। শনিবার বিকেল ৫ টার দিকে কালীগঞ্জ শহরের মুক্তিযোদ্ধা কমপ্লেক্সের সামনে এ দুর্ঘটনা ঘটে। নিহত হাবিবুর রহমান যশোর সেনানিবাসে সৈনিক পদে কর্মরত ছিলেন ও কুষ্টিয়া জেলার কোমরভোগ গ্রামের মোঃ আমিরুল ইসলামের ছেলে। নিহত হাবিবুর রহমানের আইডি নং- আর্টি-১৮০৭৪ ও সেনা নং-১২৩৩২৯১। কালীগঞ্জ থানার ওসি ইউনুচ আলী জানান, যশোর সেনানিবাস থেকে রেশন নিয়ে মোটরসাইকেলে কুষ্টিয়ায় গ্রামের বাড়িতে যাচ্ছিলেন তিনি। পথিমধ্যে মুক্তিযোদ্ধা কমপ্লেক্সের সামনে পৌঁছালে একটি পিকআপ তাকে চাপা দেয়। এসময় মোটরসাইকেল থেকে রাস্তার উপর পড়ে যান তিনি। এ সময় পিকআপটি তার মাথার উপর দিয়ে চলে যায়। এতে সেনা সদস্য হাবিবুর রহমান ঘটনাস্থলেই মারা যান। পুলিশ লাশটি উদ্ধার করেছে। ঘাতক পিকআপটি আটকের চেষ্টা করা হচ্ছে।

দৌলতপুরে প্রতিপক্ষের হামলায় মহিলাসহ ৪ জন আহত

দৌলতপুর প্রতিনিধি ॥ কুষ্টিয়ার দৌলতপুর উপজেলার খলিশাকুন্ডিতে জমি সংক্রান্ত বিরোধে প্রতিপক্ষের হামলায় এক মহিলাসহ ৪ জন আহত হয়েছেন। শুক্রবার দুপুর সাড়ে ১২ টার দিকে হামলার এ ঘটনা ঘটে। আহতদের মধ্যে ২জনকে আশংকাজনক অবস্থায় কুষ্টিয়া জেনারেল হাসপাতালে ভর্তি করা হয়েছে। এ ঘটনায়  দৌলতপুর থানায় মামলা দায়ের করা হয়েছে। জানাগেছে, খলিশাাকুন্ডি গ্রামের আফজাল হোসেন তার নিজ জমিতে শুক্রবার একটি ঘর নির্মাণ করতে যায়। এ সময় প্রতিপক্ষের মাইজু মন্ডল জোরপূর্বক ঘর করতে বাঁধা দেয়ার চেষ্টা করেন। এ নিয়ে উভয়ের মধ্যে কথাকাটাকাটির এক পর্যায়ে মাইজু তার লোকজন নিয়ে হামলা চালিয়ে আফজালের বাবা তাফেজ মন্ডল, বোন রুমা, ভাই রাজ্জাক ও আফজালকে ধারালো অস্ত্র দিয়ে আঘাত করে। রুমার মাথায় রামদা দিয়ে আঘাত করলে সে গুরুতর আহত হয়। আহতদের মধ্যে রুমা ও তাফেজকে প্রথমে দৌলতপুর হাসপাতালে নেওয়া হলে নেয়া হলে রুমাকে কুষ্টিয়া জেনারেল হাসপাতালে প্রেরণ করা হয়। তার অবস্থা আশংকাজনক বলে জানা গেছে। এ ঘটনায় শুক্রবার আহত আফজাল বাদী হয়ে দৌলতপুর থানায় মামলা দায়ের করেছে। তবে এ ঘটনায় গতকাল শনিবার এ রিপের্ট লেখা পর্যন্ত কাউকে গ্রেফতার করতে পারেনি পুলিশ।

বাংলাদেশ সাংবাদিক অধিকার ফোরাম আয়োজিত শোক সভা ও দোয়া মাহফিলে আতাউর রহমান আতা

বঙ্গবন্ধুকে হত্যার মধ্যদিয়ে পাকিস্তান শাসক গোষ্ঠি বাঙালীকে নেতৃত্ব শুন্য করতে চেয়েছিল

নিজ সংবাদ ॥ কুষ্টিয়া সদর উপজেলা পরিষদের চেয়ারম্যান ও কুষ্টিয়া শহর আওয়ামীলীগের সাধারণ সম্পাদক আতাউর রহমান আতা বলেন, সর্বকালের সর্বশ্রেষ্ট সন্তান, বাঙ্গালী জাতির জনক বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানকে হত্যার মধ্যদিয়ে পাকিস্তান শাসক গোষ্টি বাঙ্গালীকে নেতৃত্ব শুন্য করতে চেয়েছিল। তাদের পরিকল্পনা বাস্তবায়নে এ দেশীয় মাটি-পানি বাতাসে বেঁচে থাকা কতিপয় বিশ্বাস ঘাতক তাদের মদদ দিয়েছিল। তিনি বলেন, জিয়া জানতো বঙ্গবন্ধুকে হত্যা করা হবে। সে জেনেও রাষ্ট্রের একজন সৈনিক হয়েও রাষ্ট্রপ্রধান বা গোয়েন্দা সংস্থাকে অবহিত করেননি। তাই ১৯৭৫ সালের ১৫ই আগষ্ট জাতির জনককে স্ব পরিবারে নৃশংসভাবে হত্যার জন্য জিয়ারও বিচার দাবী করছি। কেননা বঙ্গবন্ধুর হত্যার সাথে জিয়া জড়িত এবং সেই মুল আসামী।

গতকাল ৩১ আগষ্ট শনিবার বিকেলে কুষ্টিয়া প্রেসক্লাবের আব্দুর রাজ্জাক মিলনায়তনে বাংলাদেশ সাংবাদিক অধিকার ফোরাম আয়োজিত জাতির জনক বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের ৪৪তম শাহাদৎ বার্ষিকী উপলক্ষ্যে শোকসভা ও দোয়া মাহফিলে প্রধান অতিথির বক্তব্যে তিনি এসব কথা বলেন। শেষে তিনি বঙ্গবন্ধু ও তার পরিবারের প্রতি গভীর শ্রদ্ধা জ্ঞাপন করেন।

সাংবাদিক অধিকার ফোরাম কুষ্টিয়া জেলা শাখার সভাপতি নুর আলম দুলালের সভাপতিত্বে আলোচনা সভায় বিশেষ অতিথির বক্তব্যে কুষ্টিয়া প্রেসক্লাবের সাধারণ সম্পাদক, দৈনিক আন্দোলনের বাজার পত্রিকার সম্পাদক ও চ্যানেল আই প্রতিনিধি আনিসুজ্জামান ডাবলু বলেন, কোন অপশক্তিই স্বাধীন সার্বভৌম বাংলাদেশকে রুখতে পারেনি। অনেকেই মনে করেছিল জাতির জনককে হত্যার মধ্যদিয়ে বাংলাদেশকে চিরতরে নিঃশেষ করে দেয়া হবে। তা কিন্তু হয়নি। তিনি বলেন, বঙ্গবন্ধু ও আওয়ামীলীগ এ দেশের সকল মানুষের দল ও নেতা এটা কারো ব্যক্তিগত সম্পদ নয়। কোন অনিয়ম, দুর্নীতির সংবাদ প্রকাশ করলেই সেই সাংবাদিককে জামায়াত-শিবির, বিএনপি বানানোর অপচেষ্টা বন্ধ করতে হবে। জাতির জনকের স্বপ্নকে বাস্তবায়ন করতে হলে সাদাকে সাদা, কালোকে কালো বলতে হবে। অপর বিশেষ অতিথির বক্তব্যে প্রেসক্লাবের যুগ্ম সাধারণ সম্পাদক ও চ্যানেল ২৪-এর স্টাফ রিপোর্টার শরীফ বিশ্বাস বলেন, আমরা বলতে শুনি বঙ্গবন্ধু এ দেশের বাক স্বাধীনতাকে রুদ্ধ করেছিলেন। এটি মিথ্যাচার। বঙ্গবন্ধুর বদৌলতে এ দেশে সংবাদপত্রের স্বাধীনতা এসেছে। অনেক শ্রেনী পেশার মানুষ আজ জাতীয় সংসদে এমপি হয়েছেন। তিনি বঙ্গবন্ধুর বিদেহী আত্মার শান্তি কামনা করেন। অন্যান্যদের মধ্যে বক্তব্য রাখেন এডিটরস্ ফোরামের যুগ্ম সাধারণ সম্পাদক ফেরদৌস রিয়াজ জিল্লু, কুষ্টিয়া টেলিভিশন জার্ণালিষ্ট এসোসিয়েশনের সাধারণ সম্পাদক এস এম রাশেদ, ডিবিসি টেলিভিশন ও  দৈনিক সমকালের জেলা প্রতিনিধি সাজ্জাদ রানা, সদর উপজেলা যুবলীগ নেতা শিশির প্রমুখ। আলোচনা সভা শেষে  দোয়া মাহফিল পরিচালনা করেন কুষ্টিয়া প্রেসক্লাবের নির্বাহী সদস্য ও দৈনিক আজকের সুত্রপাতের সম্পাদক আখতার হোসেন ফিরোজ। অনুষ্ঠানে উপস্থিত ছিলেন দৈনিক সুত্রপাতের সম্পাদক ডাঃ মোকাদ্দেস হোসেন সেলিম, আমাদের সময়ের কুষ্টিয়া প্রতিনিধি ও বিজয় অন লাইনের সম্পাদক শামসুল আলম স্বপন, পল্লী বিদ্যুত সমিতির সভাপতি সাইফদৌলা তরুন, কুষ্টিয়া প্রেসক্লাবের দপ্তর সম্পাদক ও বাংলা টিভির জেলা প্রতিনিধি লিটন উজ-জামান, প্রেসক্লাবের নির্বাহী সদস্য ডালিয়া পারভিন, দৈনিক নবচেতনার প্রতিনিধি আহসান আলী, ডেইলী সানের কুষ্টিয়া প্রতিনিধি রেজাউল করিম রেজা, সাংবাদিক অধিকার ফোরাম সদস্য শেখ রিপন, বিটিভির ক্যামেরাপার্সন খাইরুল ইসলাম সম্রাট, এসএ টিভির ক্যামেরাপার্সন হাবিবুর রহমান হাবিব, যুবলীগ নেতা ইফাজ, মোস্তাক প্রমুখ।

স্বাস্থ্য পরীক্ষার জন্য লন্ডনের উদ্দেশে ঢাকা ত্যাগ রাষ্ট্রপতির

ঢাকা অফিস ॥ রাষ্ট্রপতি মো: আবদুল হামিদ স্বাস্থ্য পরীক্ষা ও চোখের চিকিৎসার জন্য গতকাল শনিবার সকালে লন্ডনের উদ্দেশে ঢাকা ত্যাগ করেছেন। রাষ্ট্রপতিকে বহন করা বিমান বাংলাদেশ এয়ারলাইন্সের একটি ভিভিআইপি ফ্লাইট (বিজি-০০১) সকাল ৯টা ৪৫ মিনিটে হযরত শাহজালাল আন্তর্জাতিক বিমান বন্দর ত্যাগ করে। রাষ্ট্রপ্রধান লন্ডনের মুরফিল্ড আই হসপিটাল এবং বুপা ক্রমওয়েল হসপিটালে স্বাস্থ্য পরীক্ষা করাবেন। মুক্তিযুদ্ধ বিষয়ক মন্ত্রী আ ক ম মোজাম্মেল হক, কূটনৈতিক কোরের ভারপ্রাপ্ত ডিন এবং ঢাকায় তুরস্কের রাষ্ট্রদূত দেভরিম ওজতুর্ক, মন্ত্রিপরিষদ সচিব মোহাম্মদ সফিউল আলম, তিন বাহিনী প্রধান, প্রধানমন্ত্রীর মুখ্যসচিব, পররাষ্ট্র সচিব, স্বরাষ্ট্র সচিব, পুলিশের প্রধান পরিদর্শক (আইজিপি), ভারপ্রাপ্ত ব্রিটিশ হাইকমিশনার কানবার হুসেন বোর এবং বেসামরিক ও সামরিক উর্ধ্বতন কর্মকর্তাগণ বিমান বন্দরের ভিভিআইপি লাউঞ্জে রাষ্ট্রপতিকে বিদায় জানান। রাষ্ট্রপতির উপ- প্রেস সচিব আবুল কালাম আজাদ বাসসকে বলেন, আগামী ৮ সেপ্টেম্বর রাষ্ট্রপতির দেশে ফেরার কথা রয়েছে। এর আগে ৭৫ বছর বয়সী রাষ্ট্রপতি হামিদ চলতি বছরের মে মাসে লন্ডনে স্বাস্থ্য পরীক্ষার জন্য গিয়েছিলেন। রাষ্ট্রপতি দীর্ঘদিন ধরে গ¬ুকোমায় ভুগছেন। এছাড়াও তিনি জাতীয় সংসদের স্পিকার থাকার সময় থেকেই লন্ডনে স্বাস্থ্য পরীক্ষা করে আসছেন।

কুষ্টিয়ায় সরকারি খরচে আইনগত সহায়তা প্রদানে মতবিনিময় সভায় অরূপ কুমার গোস্বামী

তৃণমুলের মানুষের কাছে বিনা খরচে আইনি সেবা পৌঁছে দিতে সরকার আন্তরিকভাবে কাজ করছে

নিজ সংবাদ ॥ বর্তমান সরকার বিনা খরচে তৃণমুলে আইনি সেবা পৌঁছে দিতে আন্তরিক ভাবে কাজ করে যাচ্ছে। এ জন্য সচেতন করতে হবে সাধারন মানুষ। উপজেলা ও ইউনিয়ন লিগ্যাল এইড কমিটিকে সক্রিয় হতে হবে। কারণ সাধারন মানুষ ন্যায় বিচার পেতে তাদের কাছে যায়। সাধারন অসহায় মানুষের পাশে দাঁড়ানো আমাদের সবার উচিত। তাই যারা গরিব আইনি সেবা পাওয়ার মত সক্ষমতা নেই তাদের জন্য লিগ্যাল এইডের দরজা খোলা।

তৃণমুলে আইনি সেবা পৌঁছে দিতে সরকারি খরচে আইনগত সহয়তা প্রদান বিষয়ে এক মতবিনিময় সভায় প্রধান অতিথির বক্তৃতায় কুষ্টিয়ার জেলা ও দায়রা জজ অরূপ কুমার গোস্বামী এ কথা বলেন। উপজেলা লিগ্যাল এইড কমিটির আয়োজনে সকাল সাড়ে ৯টায় সদর উপজেলা পরিষদ হল রুমে মতবিনিময় সভা অনুষ্ঠিত হয়।

কুষ্টিয়া সদর উপজেলা পরিষদের চেয়ারম্যান ও উপজেলা লিগ্যাল এইড কমিটির সভাপতি আতাউর রহমান আতার সভাপতিত্বে প্রধান অতিথি ছিলেন জেলা ও দায়রা জজ অরূপ কুমার গোস্বামী। এ অনুষ্ঠানে উপস্থিত ছিলেন নারী ও শিশু নির্যাতন দমন ট্রাইব্যুনালের আদালতের বিচারক মুন্সী মো. মশিয়ার রহমান, চীফ জুডিসিয়াল ম্যাজিষ্ট্রেট  মো: আশরাফুল ইসলাম,  অতিরিক্ত জেলা ও দায়রা জজ তহিদুল ইসলাম, সৈয়দ হাবিবুল ইসলাম, জাতীয় আইনগত সহায়তা  প্রদান সংস্থার সহকারি পরিচালক আকতারুজ্জামান, যুগ্ম জেলা ও দায়রা জজ রাখিবুল ইসলাম, জেলা লিগ্যাল এইড অফিসার হাদিউজ্জামান, সদর উপজেলা নির্বাহী অফিসার জুবায়ের হোসেন চৌধুরী ও পিপি অ্যাডভোকেট অনুপ কুমার নন্দী, জিপি আ,স.ম আকতারুজ্জামান মাসুম, আইনজীবী সমিতির সাধারন সম্পাদক অ্যাডভোকেট আবু সাঈদ প্রমুখ।

এছাড়াও অনুষ্ঠানে বিভিন্ন সরকারি-বেসরকারি প্রতিষ্ঠানের কর্মকর্তা, স্থানীয় সরকারের জনপ্রতিনিধি, ইমাম, পুরোহিতসহ শিক্ষা প্রতিষ্ঠানের শিক্ষার্থীরা অংশ নেন। অনুষ্ঠানে কুইজ প্রতিযোগিতায় শ্রেষ্ঠ প্রতিষ্ঠানকে পুরস্কৃত করা হয়।

অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথি জেলা ও দায়রা জজ অরূপ কুমার গোস্বামী আরো বলেন, লিগ্যাল এইড একটি মহতি উদ্যোগ। এ উদ্যোগ যেন সবখানে ছড়িয়ে যায়। এটা যেন মাঠে মারা না যায়। তাই সকলকে এক হয়ে কাজ করতে হবে।

উপজেলা চেয়ারম্যান সভার সভাপতি আতাউর রহমান আতা বলেন, শেখ হাসিনা সরকার গরীব মানুষের আইনি সহায়তা দিতে যে উদ্যোগ নিয়েছে তা নি:সন্দেহে প্রশংসার দাবিদার। তাই সকলকে এ কাজে সহযোগিতার মনোভাব নিয়ে এগিয়ে আসতে হবে। ইউনিয়ন চেয়ারম্যানদের দায়িত্ব অনেক বেশি।

এর আগে কুইজে অংশ নিয়ে আইনগত সহায়তা বিষয়ে নানা প্রশ্নের উত্তর দেন শিক্ষার্থী ও অনুষ্ঠানে অংশ নেয়া সাধারন স্রোতা। এ পূর্বটি উপস্থাপনা করেন বিচারক রাখিবুল ইসলাম ও হাদিউজ্জামান। পরে বিজয়ীদের হাতে পুরস্কার তুলে দেন অতিথিরা। এর আগে গত বছর থেকে উপজেলা পর্যায়ে এ ধরনের মতবিনিময় সভা শুরু করেন জেলা ও দায়রা জজ। সর্বশেষ সদর উপজেলা দিয়ে উপজেলা পর্যায়ে অনুষ্ঠান শেষ হলো। এরপর ইউনিয়ন পর্যায়েও এ ধরনের মতবিনিময় সভা করার উদ্যোগ নেয়া হবে জানান অতিথিরা।

অনুষ্ঠানে জেলার লিগ্যাল এইডের কার্যক্রম নিয়ে পরিসংখ্যান তুলে ধরার পাশাপাশি নাটিকা প্রদর্শন করা হয়।

২০১৮ সালের আগষ্ট থেকে ২০১৯ সালের আগষ্ট পর্যন্ত ৮১১টি আবেদন পাওয়া গেছে। চলতি বছর পূর্ণকালিন জেলা লিগ্যাল এইড অফিসার নিয়োগ পর বিকল্প বিরোধ নিষ্পত্তি বেড়েছে।

পবিত্র আশুরা ১০ সেপ্টেম্বর

ঢাকা অফিস ॥ বাংলাদেশের আকাশে গতকাল শনিবার সন্ধ্যায় পবিত্র মহররম মাসের চাঁদ দেখা গেছে। রোববার (১ সেপ্টেম্বর) শুরু হচ্ছে নতুন বছর ১৪৪১ হিজরি। আগামী ১০ সেপ্টেম্বর মঙ্গলবার (১০ মহররম) পবিত্র আশুরা পালিত হবে। রাজধানীর বায়তুল মোকাররমে ইসলামিক ফাউন্ডেশনের সভাকক্ষে শনিবার সন্ধ্যায় জাতীয় চাঁদ দেখা কমিটির সভায় এ সিদ্ধান্ত নেয়া হয়। এতে সভাপতিত্ব করেন ধর্ম বিষয়ক মন্ত্রণালয়ের প্রতিমন্ত্রী ও জাতীয় চাঁদ দেখা কমিটির সভাপতি শেখ মো. আব্দুল্লাহ। তিনি সভায় জানান, সকল জেলা প্রশাসন, ইসলামিক ফাউন্ডেশনের প্রধান কার্যালয়, বিভাগীয় ও জেলা কার্যালয়, বাংলাদেশ আবহাওয়া অধিদফতর, মহাকাশ গবেষণা কেন্দ্র ও দূর অনুধাবন কেন্দ্র থেকে প্রাপ্ত তথ্য অনুযায়ী বাংলাদেশের আকাশে হিজরি ১৪৪১ সনের মহররম মাসের চাঁদ দেখা গেছে। রোববার থেকে মহররম মাস গণনা শুরু হবে। আগামী ১০ সেপ্টেম্বর (১০ মহররম) পবিত্র আশুরা পালিত হবে। হিজরি সনের প্রথম মাস হচ্ছে মহররম। আশুরার দিন দেশে নির্বাহী আদেশে সরকারি ছুটি থাকে। শিয়ারা বিশেষভাবে আশুরা পালন করে থাকে। কারবালা প্রান্তরে হজরত ইমাম হোসেন (রা.) এর শাহাদাতবরণের শোকাবহ ঘটনাকে কেন্দ্র করে মূলত পালিত হয় আশুরা। তবে ইসলামের ইতিহাসে পবিত্র আশুরা অসংখ্য তাৎপর্যময় ঘটনায় উজ্জল হয়ে আছে। এই দুনিয়া সৃষ্টি, হজরত আইয়ুব (আ.) এর কঠিন পীড়া থেকে মুক্তি, হজরত ঈসা (আ.) এর আসমানে জীবিত অবস্থায় উঠে যাওয়াসহ অসংখ্য ঐতিহাসিক ঘটনার সঙ্গে মহররমের ১০ তারিখ অবিস্মরণীয় ও মহিমান্বিত। এই পৃথিবীর মহাপ্রলয় বা কিয়ামত মহররমের ১০ তারিখে ঘটবে বলে বিভিন্ন গ্রন্থে উল্লেখ রয়েছে। সভায় মন্ত্রিপরিষদ বিভাগের যুগ্মসচিব মো. খলিলুর রহমান, ধর্ম বিষয়ক মন্ত্রণালয়ের যুগ্ম সচিব মো. জহির আহমদ, ওয়াকফ প্রশাসক মো. শহীদুল ইসলাম, অতিরিক্ত প্রধান তথ্য কর্মকর্তা ফায়জুল হক, ইসলামিক ফাউন্ডেশনের সচিব কাজী নুরুল ইসলাম, সরকারি মাদ্রাসা-ই-আলিয়ার অধ্যক্ষ অধ্যাপক মো. আলমগীর রহমান, বাংলাদেশ মহাকাশ গবেষণা ও দূর অনুধাবন প্রতিষ্ঠানের চেয়ারম্যান শাহ মো. মিজানুর রহমান, বাংলাদেশ আবহাওয়া অধিদফতরের উপ-পরিচালক মো. আবদুর রহমান, বায়তুল মুকাররম জাতীয় মসজিদের সিনিয়র পেশ ইমাম হাফেজ মাওলানা মুহাম্মদ মিজানুর রহমান, চকবাজার শাহী জামে মসজিদের খতীব মাওলানা শেখ নাঈম রেজওয়ান ও লালবাগ শাহী জামে মসজিদের খতিব মাওলানা মুফতি নেয়ামত উল্লাহ প্রমুখ উপস্থিত ছিলেন।

জাতীয় শোক দিবস উপলক্ষে ছাত্রলীগ আয়োজিত অনুষ্ঠানে প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা

আদর্শ ও নীতি না থাকলে কখনও নেতা হওয়া যায় না

ঢাকা অফিস ॥ প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা বলেছেন, মহান মুক্তিযুদ্ধে আমাদের সঙ্গে কত সাথী আমরা একসঙ্গে দিনের পর দিন মিটিং করেছি, মিছিল করেছি তাদের অনেকে জীবন দিয়ে গেছেন সেই মহান মুক্তিযুদ্ধে। পরবর্তীকালে স্বাধীনতার পর অনেকে বিভ্রান্তিতে পরে আদর্শচ্যূত হয়েছে। এটাই হচ্ছে সব থেকে দুর্ভাগ্যের ব্যাপার। আদর্শ ও নীতি না থাকলে কখনও নেতা হওয়া যায় না। গতকাল শনিবার বিকালে জাতীয় শোক দিবস উপলক্ষে গণভবনে ছাত্রলীগ আয়োজিত অনুষ্ঠানে এ সব কথা বলেন প্রধানমন্ত্রী। প্রধানমন্ত্রী বলেন, আদর্শ ও নীতি না থাকলে কখনও নেতা হওয়া যায় না। আর সাময়িকভাবে নেতা হওয়া গেলেও সে নেতৃত্ব দেশ ও জাতিকে কিছু দিতে পারবে না। সবকিছু ত্যাগ করে নিজের আদর্শ নিয়ে মানুষের কল্যাণে কাজ করতে পারলে, মানুষের ভালোবাসা ও আস্থা অর্জন করতে পারলে, এই ভালোবাসা ও আস্থা অর্জন করাই হচ্ছে এক রাজনৈতিক নেতার জীবনে অমূল্য সম্পদ।

জাতির পিতা বঙ্গবন্ধুর আর্দশের কথা তুলে ধরে প্রধানমন্ত্রী বলেন, মানুষের হৃদয়ে বেঁচে থাকার একমাত্র পথ যেটা জাতির পিতা বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিব। আজকে সারা বাংলাদেশকে নয় বিশ্বব্যাপী বাংলাদেশকে স্বীকৃতি দিয়েছে। জাতির পিতা বঙ্গবন্ধু নাম মুছে ফেলার চেষ্টা করা হয়েছে উল্লেখ করে প্রধানমন্ত্রী বলেন, বিশ্বব্যাপী বাংলাদেশকে স্বীকৃতি দিলেও আমাদের দুর্ভাগ্য তার নামটি মুছে ফেলার চেষ্টা করা হয়েছে। পঁচাত্তরে তাকে যে হত্যা করা হল। এই হত্যাটা কেন? এর কারণ একটাই তিনি এই দেশটাকে স্বাধীন করে দিয়ে যান। এই স্বাধীনতা অর্জনের পরে মাত্র সাড়ে তিন বছর সময় পেয়েছিল। এই সাড়ে তিন বছরের মধ্যে একটি যুদ্ধবিধ্বস্ত দেশকে তিনি যেভাবে গড়ে তুলেছিলেন এটাও একটা বিরাট ইতিহাস।  পৃথিবীর কোনো দেশ যুদ্ধের পর গড়ে তোলার জন্য বছরের পর বছর সময় লাগে। কিন্তু মাত্র সাড়ে তিন বছরের মধ্যে তিনি একটি প্রদেশকে রাষ্ট্রে উন্নতি করা, ৯ মাসের মধ্যে সংবিধান দেয়া, একটি রাষ্ট্র পরিচালনার জন্য আমাদের পথ দেখিয়েছেন। শুধু তাই না, তিনি বাংলাদেশের অর্থনীতিকে একটি ভিত্তির ওপর দাঁড় করিয়েছিলেন। তিনি বলেন, জাতির পিতা বেঁচে থাকলে বাংলাদেশ ১০ বছরের মধ্যে একটি উন্নত দেশ হিসেবে বিশ্বে পরিচিত পেত। এই দেশকে তিনি ক্ষুধা, দারিদ্র্যমুক্ত সোনার বাংলা হিসেবে গড়ে তুলতে পারতেন।

মাছ চাষ হতে পারে পারিবারিক আয়ের একটি বড় উৎস

কৃষি প্রতিবেদক ॥ দেশীয় মলা মাছ হতে পারে পুষ্টি ও আয়ের অন্যতম বড় উৎস।

দেশের বেশিরভাগ অঞ্চলে খালবিলের অতি পরিচিত একটি মাছ মলা। প্রত্যন্ত গ্রাম এলাকায় বসতবাড়ির পুকুরে এই মাছ চাষ করে কৃষিনির্ভর পরিবারের পুষ্টির অভাব পূরণ সম্ভব। এছাড়া খাদ্য নিরাপত্তা নিশ্চিত করার পাশাপাশি এই মাছ চাষ পারিবারিক আয়ের একটি বড় উৎস হতে পারে। সব মিলিয়ে মলা মাছ চাষ হতে পারে টেকসই উন্নয়নের হাতিয়ার।

সম্প্রতি আন্তর্জাতিক গবেষণা সংস্থা ওয়ার্ল্ড ফিশের ওয়েবসাইটে প্রকাশিত এক গবেষণা প্রতিবেদনে এসব কথা বলা হয়েছে। বাংলাদেশের কিছু এলাকা নিয়ে এই গবেষণা করা হয়েছে। ভিটামিন-এ সমৃদ্ধ এই মাছটি মানব দেহের নানা রোগ প্রতিরোধে ভূমিকা রাখে বলে গবেষণায় উল্লেখ করা হয়।

প্রতিবেদনে বলা হয়েছে, বর্তমানে বাংলাদেশের প্রত্যন্ত অঞ্চলে কৃষিনির্ভর ২  কোটিরও বেশি মানুষ দীর্ঘস্থায়ী ভিটামিন এ, আয়রন এবং জিঙ্কের অভাবে ভুগছে। যাদের মধ্যে নারী ও শিশুদের সংখ্যাই বেশি। ফলে শিশুদের শরীরের স্বাভাবিক বৃদ্ধি ও মস্তিষ্কের গঠন বাধাগ্রস্ত হচ্ছে।

দেশটির নিম্নবিত্ত জনগোষ্ঠীর কাছে সাশ্রয়ী মূল্যের প্রধানতম খাদ্য ভাত। তবে এই ভাত পর্যাপ্ত ভিটামিন ও মিনারেলের চাহিদা পূরণে সমর্থ নয়। এ অবস্থায় গ্রামাঞ্চলে বসতবাড়ির পুকুরে অন্যান্য মাছের সঙ্গে মলা চাষ পুষ্টি এবং পরিবারের আয়ের একটি ভালো উৎস হতে পারে। একই সঙ্গে গ্রাম্য অর্থনীতির টেকসই উন্নয়নে ভালো ভূমিকা রাখতে পারে।

যশোরে মলা মাছ চাষের উপর একটি প্রকল্প পরিচালনা করেছে ‘সেন্ট্রাল সিস্টেম ইনিশিয়েটিভ অব সাউথ এশিয়া ইন বাংলাদেশ’ নামের একটি সংস্থা। এই সংস্থার অর্থায়নে ২০১০ থেকে ২০১৫ সাল পর্যন্ত ৫ বছর মেয়াদে পরিচালিত প্রকল্পটির উদ্দেশ্য ছিল, গ্রামাঞ্চলের কৃষিনির্ভর পরিবারের পুষ্টির অভাব পূরণের মাধ্যমে খাদ্যে নিরাপত্তা নিশ্চিত করার পাশাপশি পারিবারিক আয়ের ভালো উৎস নিশ্চিত করা।

এই প্রকল্পের সহায়তায় নিজ বাড়ির পুকুরে অন্যান্য কার্প জাতীয় মাছের সঙ্গে মলা মাছ চাষ করছেন যশোরের জগাহাটি গ্রামের তাছবিনা বেগম। তিনি বলেন, এই প্রকল্প গ্রহণের আগে আমরা সপ্তাহে একবার মাত্র মাছ খেতে পারতাম। কারণ পরিবারের অন্যান্য আবশ্যিক চাহিদা মিটিয়ে পর্যাপ্ত মাছ কিনে খাওয়া অনেকটা অসম্ভব ছিল। এখন আমরা শিখেছি কিভাবে অন্যান্য মাছের সঙ্গে মলা চাষ করতে হয়। এই নারী আরও জানান, এখন আমরা খাওয়ার পাশাপাশি মাছ বাজারে বিক্রিও করতে পারছি। সপ্তাহে দুবার মাছ ধরা হয়। প্রথম বছর  শেষে মাছ বিক্রি করে ২১ হাজার টাকা আয় হয়েছে বলেও তিনি জানান ।

প্রসঙ্গত, মলা অত্যন্ত সুস্বাদু এবং পুষ্টিসমৃদ্ধ মাছ। এই মাছে প্রচুর পরিমাণে আমিষ, ক্যালসিয়াম, আয়রন ও ভিটামিন রয়েছে। মলা মাছ বিল হাওর-বাওড়, নদী, ধানক্ষেত, পুকুর ও ডোবায় পাওয়া যায়। প্রান্তিক মৎস্য চাষীরা পুকুর-ডোবা ও অন্যান্য জলাশয়ে সাধারণত রুই জাতীয় মাছ চাষ করে থাকেন। তারা মলা জাতীয়  ছোট মাছকে অবাঞ্চিত মাছ হিসেবে বিবেচনা করে থাকেন। অথচ এখন পর্যন্ত গ্রামীণ জনগোষ্ঠীর অধিকাংশই প্রাণিজ আমিষের জন্য নির্ভর করে থাকেন মলাসহ অন্যান্য  ছোট মাছের উপর।

স্মিথের ব্যাকুলতা

ক্রীড়া প্রতিবেদক ॥ মাঠে ফিরতে যেন ব্যাকুল হয়ে উঠেছেন অস্ট্রেলিয়ার স্টিভ স্মিথ। এ্যাশেজের চতুর্থ ম্যাচে মাঠে নামার জন্য উদগ্রীব হয়ে আছেন তিনি। যার প্রমান মেলে কাউন্টি দল ডার্বিশায়ারের বিপক্ষে চলমান অনুশীলন ম্যাচে গতকাল বৃহস্পতিবার আউট হয়েই সরাসরি চলে গেলেন অনুশীলন নেটে। লর্ডসে ড্র হওয়া দ্বিতীয় ম্যাচে ইংল্যান্ড পেসার জোফরা আর্চারের বাউন্সারে আগাত পাওয়ার পর লীডসে তৃতীয় টেস্ট খেলতে পারেননি অস্ট্রেলিয়ার সাবেক অধিনায়ক। এ ম্যাচে বেন স্টোকসের অবিশ্বাস্য ইনিংসের সুবাদে এক উইকেটে জয়ী হয়ে সিরিজে সমতা আনে ইংল্যান্ড। এরপর চলমান তিন দিনের অনুশীলন ম্যাচে ৩৮ বলে ২৩ রান করে আউট হন তিনি। কিন্তু আউট হওয়ার পর কাল বিলম্ব না করেই ব্যাট হাতে নেমে পড়ের অনুশীলনে। উদ্দেশ্য একটাই ম্যানচেস্টারে শুরু হওয়া চতুর্থ টেস্টে তাকে মাঠে নামতেই হবে। স্মিথের সঙ্গে ৫৮ রানের জুটি গড়া মিচেল মার্শ বলেন, ‘আমি মনে করি স্মিথ ২০ কিংবা ২২০ যত রানই করুক। তারপরও সে নেটে অনুশীলনে যাবে। সে এমনটাই করে থাকে এবং এ কারণেই সে বিশ্ব সেরা ব্যাটসম্যান।’ লন্ডনের ওভালে ১২ সেপ্টেম্বর সিরিজের পঞ্চম ও শেষ টেস্ট শুরুর আগে ৪ সেপ্টেম্বর ওল্ড ট্রাফোর্ডে চতুর্থ ম্যাচে মুখোমুখি হবে অস্ট্রেলিয়া-ইংল্যান্ড।

মেসের বিপক্ষে পিএসজির জয়

ক্রীড়া প্রতিবেদক ॥ আক্রমণভাগের মূল খেলোয়াড়দের অনুপস্থিতিতেও প্রত্যাশিত জয় তুলে নিয়েছে পিএসজি। লিগ ওয়ানে আনহেল দি মারিয়া ও এরিক মাক্সিম চুপো-মোটিংয়ের গোলে নবাগত মেসকে হারিয়েছে টমাস টুখেলের শিষ্যরা। প্রতিপক্ষের মাঠে শুক্রবার রাতে ২-০ গোলে জিতেছে গত দুবারের চ্যাম্পিয়নরা। নিমকে হারিয়ে লিগ শুরু করা পিএসজি দ্বিতীয় রাউন্ডে রেনের মাঠে হেরেছিল। গত সপ্তাহে তুলুজের বিপক্ষে ৪-০ গোলে জিতে লিগে জয়ের পথে ফিরলেও ওই ম্যাচেই বড় ধাক্কা খায় টুখেলের দল। চোট পেয়ে ছিটকে যান কিলিয়ান এমবাপে ও এদিনসন কাভানি। আর ভবিষ্যৎ নিয়ে অনিশ্চয়তা থাকায় নেইমারকে না খেলানোর সিদ্ধান্ত নিয়েছেন কোচ। তাতে অবশ্য মেসের বিপক্ষে জয় নিয়ে ভাবতে হয়নি পিএসজিকে। প্রথমার্ধেই দুই গোলে এগিয়ে যায় দলটি। একাদশ মিনিটে আর্জেন্টাইন মিডফিল্ডার দি মারিয়ার স্পট কিকে প্রথম গোলের দেখা পায় পিএসজি। স্প্যানিশ উইঙ্গার হুয়ান বের্নাত ডি-বক্সে ফাউলের শিকার হলে পেনাল্টি পায় দলটি। পাঁচ মিনিট পর সেনেগালের মিডফিল্ডার ইদ্রিসা গেয়ির হেড ক্রসবারে লাগলে ব্যবধানে বাড়েনি। ৪৩তম মিনিটে হেডে ব্যবধান দ্বিগুণ করেন অরক্ষিত চুপো-মোটিং। তুলুজের বিপক্ষে জোড়া গোল করেছিলেন ক্যামেরুনের এই ফরোয়ার্ড। চার ম্যাচে তিন জয়ে ৯ পয়েন্ট নিয়ে শীর্ষে উঠেছে পিএসজি। সমান পয়েন্ট নিয়ে গোল ব্যবধানে পিছিয়ে দ্বিতীয় স্থানে নেমে গেছে এক ম্যাচ কম খেলা রেন।

‘নেইমারের জন্য বার্সার প্রস্তাব পিএসজির কাছে যথেষ্ট নয়’

ক্রীড়া প্রতিবেদক ॥ নেইমারের জন্য বার্সেলোনার দেওয়া প্রস্তাব পিএসজির চাওয়া পূরণ করেনি বলে জানিয়েছেন ফরাসি ক্লাবটির স্পোর্টিং ডিরেক্টর লিওনার্দো। আর উপযুক্ত প্রস্তাব না এলে বিশ্বের সবচেয়ে দামি ফুটবলারকে প্যারিসেই থাকতে হবে বলে মন্তব্য করেছেন এই কর্মকর্তা। ব্রাজিলের এই ফরোয়ার্ড নিজেও ক্লাব ছাড়তে চান। ২০১৭ সালে রেকর্ড ২২ কোটি ২০ লাখ ইউরো ট্রান্সফার ফিতে প্যারিসে পা রাখা নেইমারকে ফিরে পেতে আগ্রহী বার্সেলোনাও। এরই মধ্যে একাধিকবার পিএসজি ও কাতালান ক্লাবটির মধ্যে আলোচনার খবর সংবাদমাধ্যমে এসেছে। তবে সাবেক খেলোয়াড়কে ফিরে পেতে স্প্যানিশ চ্যাম্পিয়নদের হাতে বেশি সময় নেই। ২ সেপ্টেম্বর ইউরোপে শেষ হতে যাচ্ছে গ্রীষ্মকালীন দল-বদলের সময় সীমা। ভবিষ্যৎ নিয়ে অনিশ্চয়তা থাকায় লিগ ওয়ানে নতুন মৌসুমের ম্যাচে এখন পর্যন্ত নেইমারকে দলে রাখেননি কোচ টমাস টুখেল। নবাগত মেসের বিপক্ষে শুক্রবার ২-০ গোলে জয়ের পর ২৭ বছর বয়সী এই ফুটবলারকে নিয়ে নিজেদের অবস্থান জানান লিওনার্দো। “২৭ আগস্ট নেইমারের জন্য প্রথম বার্সেলোনার কাছ থেকে আমরা একটা প্রস্তাব পাই। আমাদের চাওয়া পূরণ করে এমন কোনো প্রস্তাব তারা এখন পর্যন্ত দেয়নি।” “নেইমার প্রশ্নে পিএসজির অবস্থান সবসময় পরিষ্কার। যদি একটা সন্তোষজনক প্রস্তাব আসে, তাহলেই সে ক্লাব ছাড়তে পারে। কিন্তু পরিস্থিতিটা তেমন না। আলোচনা ভেস্তে যায়নি কিন্তু এই মুহূর্তে কোনো সমঝোতা হয়নি কারণ আমাদের চাওয়া পূরণ হয়নি।” নেইমারের পিএসজি ছাড়তে চাওয়ার ইচ্ছার কথা লুকাননি লিওনার্দো। কিন্তু তার মূল্য অনেক বেশি হওয়ার কারণেই সময়ের অন্যতম সেরা এই ফুটবলারের ক্লাব ছাড়াটা সহজ হচ্ছে না বলে জানান এই কর্মকর্তা। “নেইমার সবসময়ই স্পষ্ট করে জানিয়েছে যে সে ক্লাব ছাড়তে চায়। কিন্তু তাকে কেনার মতো যথেষ্ট অর্থ কারো নেই। আর যদি এমন কোনো প্রস্তাব না আসে যেটা আমরা যথার্থ বলে মনে করি, তাহলে সে থাকবে।” “সে অসাধারণ একজন খেলোয়াড়। কিন্তু ক্লাবের সঙ্গে তার সম্পর্কটা এই মুহূর্তে খুব ভালো নয়।” এদিকে নেইমারের দল-বদল নিয়ে একের পর এক খবরে বিরক্ত বার্সেলোনার কোচ এরনেস্তো ভালভেরদে। দল-বদলের সময়সীমা শেষের অপেক্ষা করছেন তিনি। বিষয়টি নিয়ে কতটা বিরক্ত-শুক্রবার সংবাদ সম্মেলনে এমন এক প্রশ্নের জবাবে ভালভেরদে বলেন, ১০ এর মধ্যে সাড়ে নয়!

 

১০ জনের সাউথ্যাম্পটনের বিপক্ষেও পারল না ইউনাইটেড

ক্রীড়া প্রতিবেদক ॥ ইংলিশ প্রিমিয়ার লিগে আবারও হোঁচট খেয়েছে ম্যানচেস্টার ইউনাইটেড। দ্বিতীয়ার্ধে অনেকটা সময় একজন কম নিয়ে খেলা সাউথ্যাম্পটনের বিপক্ষে পয়েন্ট হারিয়েছে উলে গুনার সুলশারের দল। সাউথ্যাম্পটনের মাঠে শনিবার স্থানীয় সময় দুপুরের ম্যাচটি ১-১ গোলে ড্র হয়। শুরুতে ড্যানিয়েল জেমসের নৈপুণ্যে এগিয়ে যাওয়ার পর দ্বিতীয়ার্ধে গোল হজম করে ইউনাইটেড। দুর্দান্ত এক গোলে দশম মিনিটে ইউনাইটেডকে এগিয়ে দেন জেমস। মিডফিল্ডার স্কট ম্যাকটমিনের পাস ডি-বক্সে পেয়ে জায়গা বানিয়ে জোরালো শটে দূরের পোস্ট দিয়ে ঠিকানা খুঁজে নেন জেমস। জুনে সোয়ানসি সিটি থেকে আসা ওয়েলসের এই উইঙ্গার লিগে চার ম্যাচ খেলে এই নিয়ে তিন গোল করলেন। ৫৮তম মিনিটে গোল খেয়ে বসে অতিথিরা। ম্যাচে সাউথ্যাম্পটনের প্রথম কর্নার ঠেকিয়ে দিয়েছিলেন ইউনাইটেড গোলরক্ষক দাভিদ দে হেয়া, তবে বিপদমুক্ত করতে পারেননি। ছোট ডি-বক্সে সতীর্থের বাড়ানো বল হেডে জালে পাঠান ডেনমার্কের ডিফেন্ডার ইয়ানিক। ৭৩তম মিনিটে ম্যাকটমিনেকে অহেতুক ফাউল করে দ্বিতীয় হলুদ কার্ড দেখে মাঠ ছাড়েন সাউথ্যাম্পটনের ডিফেন্ডার কেভিন ডানজো। প্রতিপক্ষ শিবিরে একজন কম থাকার সুযোগে একের পর এক আক্রমণ করতে থাকে ইউনাইটেড। তবে সাফল্যের দেখা মেলেনি। ৮৮তম মিনিটে অ্যাশলে ইয়ংয়ের হেড অল্পের জন্য লক্ষ্যভ্রষ্ট হলে পয়েন্ট হারানোর হতাশায় মাঠ ছাড়ে প্রতিযোগিতার সফলতম দলটি। চেলসিকে ৪-০ গোলে উড়িয়ে লিগ শুরু করা রেড ডেভিলরা এই নিয়ে টানা তিন ম্যাচ জয়শূন্য রইলো। দ্বিতীয় রাউন্ডে উলভারহ্যাম্পটন ওয়ান্ডারার্সের মাঠে ড্র করার পর গত সপ্তাহে ক্রিস্টাল প্যালেসের বিপক্ষে ঘরের মাঠে ২-১ গোলে হেরেছিল সুলশারের দল। চার ম্যাচে এক জয় ও দুই ড্রয়ে ম্যানচেস্টার ইউনাইটেডের পয়েন্ট হলো ৫। সাউথ্যাম্পটনের পয়েন্ট ৪।

 

রানুকে সালমানের ৫৫ লাখের ফ্ল্যাট দেয়ার খবর ভুয়া!

বিনোদন বাজার ॥ গান গেয়ে রাতারাতি বিখ্যাত ভারতের রানাঘাটের রানু মন্ডল। বলিউড সুপারস্টার সালমান খান ইন্টারনেট সেনসেশন রানু মন্ডলকে ৫৫ লাখ টাকার ফ্ল্যাট উপহার দিয়েছেন বলে খবর ছড়িয়েছে ভারতের বিভিন্ন সংবাদ মাধ্যমে। এমনকী, সালমান ‘দাবাং থ্রি’তে প্লে ব্যাকের প্রস্তাবও দিয়েছেন নাকি রানুকে, কিন্তু এসব খবর আসলে কতটা সত্যি? রানাঘাঠের ‘আমরা সবাই শয়তান’ ক্লাবের সদস্যরা রানু মন্ডলকে নিয়ে এসব রটনা মিথ্যে বলে উড়িয়ে দিচ্ছেন। সংবাদ সংস্থা, আইএএনএস’কে দেওয়া এক সাক্ষাৎকারে ক্লাবটির সদস্য ভিকি বিশ্বাস দাবি করেন এসব ‘ভুয়া খবর’। তিনি বলেন, ‘আমাদের ক্লাবের দু’জন সদস্য রানাঘাট স্টেশনে ওই ভিডিওটি করেছিল। যা ভাইরাল হয়। তখন থেকে আমরাই রানুদিকে দেখাশোনা করছি। রানুদিকে সালমান খান ৫৫ লাখের ফ্ল্যাট দিচ্ছে এই ধরণের কোনও খবর শুনিনি। এটা ভুয়া খবর, যা সোশ্যাল মিডিয়ায় ছড়িয়েছে।’ বিভ্রান্তি কাটাতে ‘আমরা সবাই শয়তান’ ক্লাবের সদস্য ভিকি বিশ্বাস আরও বলেন, ‘একটি রিযেলিটি শো-তে উপস্থিত হওয়ার জন্য রানু মন্ডলকে টাকা দেওয়া হয়েছে। সোশ্যাল মিডিয়ায় রানুদিকে নিয়ে বহু রটনা রয়েছে। যেমন, সে গাড়ি কিনছেন, বিগ বসে যাচ্ছেন বা হিমেশ রেশমিয়া দিদিকে ৫০ লক্ষ দিয়েছেন গান গাওয়ার জন্য। হ্যাঁ, উনি (হিমেশ রেশমিয়া) অনেক করেছেন রানু মন্ডলের জন্য। যেমন, যাতায়াতের খরচ দিয়েছেন। তবে সব প্রচারই সত্যি নয়।’ রানাঘাট স্টেশনে বসেই রানু গেয়েছিলেন সুর সম্রাজ্ঞী লতা মঙ্গেশকরের গাওয়া ‘এক প্যয়ার কা নগমা হ্যয়।’ যা ভিডিও করে ফেসবুকে দেন স্থানীয় এক যুবক। মুহূর্তে তা ভাইরাল হয়। তারপর সবটাই ইতিহাস। রানু অন্ধকার থেকে লাইম লাইটে। এরপর তাঁকে ঘিরেই রটে যাচ্ছে নানা খবর। তথ্যসূত্র: এনডিটিভি, জি নিউজ।

 

ধারাবাহিক নাটক ‘সোনার খাঁচা’

বিনোদন বাজার ॥ ধারাবাহিক নাটক ‘সোনার খাঁচা’। নাটকটি প্রতি সপ্তাহের বৃহস্পতি, শুক্র ও শনিবার প্রচার হচ্ছে। বৃন্দাবন দাসের রচনায় নাটকটি পরিচালনা করেছেন সাগর জাহান। অভিনয় করেছেন চঞ্চল চৌধুরী, তানজিকা আমিন, নাবিলা ইসলাম, আল মনসুর, ফজলুর রহমান বাবু, আ খ ম হাসান, শাহানাজ খুশি, শানু, আরফান আহমেদ, সজিব, হারুন, রাজা প্রমুখ। তৃণমূলের সবচেয়ে প্রাচীন সেবাদানকারী প্রতিষ্ঠানের নাম ইউনিয়ন পরিষদ। মানুষ যেকোনো প্রয়োজনে তাদের আশ্রয়স্থল ভাবে এই পরিষদকে। প্রতিবার নির্বাচন আসে, মানুষ স্বপ্ন দেখে তাদের ভাগ্যের পরিবর্তন হবে। অনেক স্বপ্ন নিয়ে জনসাধারণ পরিষদের নেতা নির্বাচিত করে। কিন্তু পরিষদের চেয়ারে বসে সবাই যেন বদলে যায়। অধরাই থেকে যায় মানুষের স্বপ্ন। তাই অনেকে পরিষদের ভবনটিকে সোনার খাঁচা বলে সম্বোধন করে। তাদের সব স্বপ্ন যেন সোনার খাঁচায় বন্দি, কেউ সে খাঁচা ভাঙতে পারে না। এই নাটকের কাহিনি গড়ে উঠেছে উত্তরবঙ্গের প্রত্যন্ত অঞ্চলের একটি ইউনিয়ন পরিষদকে ঘিরে।

ছাদ থেকে লাফিয়ে আত্মহত্যা করলেন অভিনেত্রী পার্ল পাঞ্জাবি

বিনোদন বাজার ॥ ছাদ থেকে লাফিয়ে পড়ে আত্মহত্যা করেছেন মুম্বাইয়ের উদীয়মান অভিনেত্রী পার্ল পাঞ্জাবি। অনেক চেষ্ঠার পরেও নাকি বলিউডে নিজের আসন পাকা করতে ব্যর্থ হওয়ায় তিনি আত্মহত্যা করেছেন। বৃহস্পতিবার মধ্যরাতে মুম্বাইয়ের ওশিয়ারার ফ্ল্যাট থেকে ঝাঁপ দেন পার্ল পাঞ্জাবি।তার বয়স হয়েছিল ২০ বছর।

ভারতীয় সংবাদমাধ্যম ডিএনএ প্রতিবেদনে জানিয়েছে, মুম্বাইয়ের ওশিয়ারার ফ্ল্যাট থেকে ঝাঁপ দেন পার্ল পাঞ্জাবি।পরে তাকে উদ্ধার করে কোকিলাবেন হাসপাতালে নেয়া হলে চিকিৎসকরা মৃত ঘোষণা করেন। খবরে বলা হয়, মুম্বাইয়ের ওশিয়ারায় একটি ফ্ল্যাট ভাড়া নিয়ে থাকতেন পার্ল পাঞ্জাবি। বেশ কয়েক বছর ধরে চেষ্টার করেও অভিনয়ে সফল হননি তিনি। মানসিক অবসাদে ভুগছিলেন তিনি। পুলিশের বরাত দিয়ে প্রতিবেদনে আরো বলা হয়েছে,অভিনয়ে সফল না হওয়ার কারণে মানসিকভাবে অবসাদগ্রস্ত হয়ে পড়েছিলেন।এছাড়া কিছুদিন ধরে তার মায়ের সঙ্গে কথা কাটাকাটি শুরু হয়। এর পরই আত্মহত্যার সিদ্ধান্ত নেন এই অভিনেত্রী। তবে পুলিশ আরও জানিয়েছে, এর আগেও দুবার আত্মহত্যার চেষ্টা করেছিলেন এই অভিনেত্রী।

মুক্তির অপেক্ষায় অপি করিমের নতুন ছবি

বিনোদন বাজার ॥ ১৫ বছর পর ২০১৮ সালের নভেম্বরে সিনেমার ক্যামেরার সামনে দাঁড়িয়েছিলেন অপি করিম। চলতি বছরের প্রথমভাগেই সে ছবিটির শুটিং শেষ করা হয়েছে। কলকাতার ইন্দ্রনীল রায়ের পরিচালনায় যৌথ প্রযোজনার এ ছবির নাম ‘ডেব্রি অব ডিজায়ার’। কথাসাহিত্যিক মানিক বন্দ্যোপাধ্যায়ের দুই ছোটগল্প ‘বিষাক্ত প্রেম’ ও ‘সুবালা’ অবলম্বনে সাজান হয়েছে ছবিটির চিত্রনাট্য। এ ছবিতে অপির চরিত্রের নাম সোমা। মেয়েটি কলকাতার। সে বিবাহিতা। স্বামী আর একমাত্র সন্তানকে নিয়ে তার সংসার। তবে স্বামী বেকার। এ কারণে সন্তানকে ইংলিশ মিডিয়ামে পড়াতে চাকরি করে সোমা। কলকাতা এবং ঢাকা মিলিয়ে ছবিটির শুটিং হয়েছে। বর্তমানে ছবিটির কারিগরি অংশের কাজ চলছে। প্রযোজনা সূত্রে জানা গেছে, ছবিটি আগামী বছরের মার্চে মুক্তি পাবে। এতে অভিনয় প্রসঙ্গে অপি করিম বলেন, ‘এ ছবির গল্প এবং আমার অভিনীত চরিত্র, দুটোই ভালো লেগেছে। এছাড়া নির্মাতাও প্রশংসিত ব্যক্তি। তার প্রচেষ্টায় এ ছবিতে সবাই ভালোভাবেই অভিনয় করেছেন। গল্পপ্রধান এই ছবিটি আশা করছি দর্শকের ভালো লাগবে।’ প্রসঙ্গত, ২০০৪ সালে মোস্তফা সরয়ার ফারুকীর পরিচালনায় ‘ব্যাচেলর’ ছবিতে সর্বশেষ অভিনয় করেন অপি করিম।

দাদন ব্যবসা নিয়ে টেলিফিল্ম

বিনোদন বাজার ॥ দেনাগ্রস্ত এক মানুষের জীবনের গল্প নিয়ে সম্প্রতি নির্মিত হয়েছে টেলিফিল্ম ‘সুগন্ধি কলম’। এটি রচনা করেছেন দয়াল সাহা, পরিচালনা করেছেন সুব্রত সঞ্জীব। এতে অভিনয় করেছেন আজাদ আবুল কালাম, শতাব্দী ওয়াদুদ, অপর্ণা ঘোষ প্রমুখ। এর গল্পে দেখা যাবে, সুখরঞ্জন একজন দেনাগ্রস্ত মানুষ। স্ত্রী সারি ও ১৩ বছরের মেয়ে লক্ষ্মিকে নিয়ে তার সংসার। বাবা মেয়ের সম্পর্ক ছিল দারুণ। আরও একটু ভালো থাকার জন্য গ্রামের প্রভাবশালী সুদ ব্যবসায়ী মনোহরের কাছ থেকে কিছু টাকা সুদে এনে একটা ছোট ঘর বানিয়েছে এবং একটা পেয়ারা বাগান দাদন নিয়েছে। পেয়ারার সিজনে সব টাকা সুদে-আসলে শোধ করে দেবে, এই শর্তে টাকা নিয়ে আসে। কিন্তু পেয়ারার পরিমাণ কম ও বাজার মূল্য কমে যাওয়ায় সুখরঞ্জন সেই টাকাটা সময় মতো দিতে পারেনি। এ কারণে মনোহর সব সময় সুখকে অপমান অপদস্ত করে। টাকা দেয়ার জন্য সব সময় চাপ প্রয়োগ করে। ক্রমে এই অপমান বৃদ্ধি পায়। এ কারণে সুখরঞ্জন একসময় পাগল হয়ে যায়। টেলিফিল্মটি শিগগিরই একটি স্যাটেলাইট চ্যানেলে প্রচার হবে বলে নির্মাতা জানিয়েছেন

রাঙ্গামাটিতে ধারণকৃত ইত্যাদির পুনঃপ্রচার হবে আজ

বিনোদন বাজার ॥ আজ রাত ১০টার ইংরেজি সংবাদের পর বাংলাদেশ টেলিভিশনে পুনঃপ্রচার হবে পাহাড়-নদী-লেক আর ঝরনা ঘেরা পর্যটনের জেলা রাঙ্গামাটিতে ধারণকৃত ইত্যাদি। এ পর্বটি ধারণ করা হয়েছিল ২০১৬ সালের সেপ্টেম্বর মাসে। ইত্যাদির এ পর্বে রয়েছে ফেসবুকের ভিন্নতর ব্যবহারের মাধ্যমে অসহায় মানুষকে সেবা দিতে এগিয়ে আসা সিরাজগঞ্জের যুবক মামুন বিশ্বাসের ওপর একটি প্রতিবেদন। আরও রয়েছে রাঙ্গামাটির বিভিন্ন ক্ষুদ্র নৃগোষ্ঠীর জীবনাচার এবং রাঙ্গামাটির প্রাকৃতিক সৌন্দর্যমন্ডিত, দর্শনীয় ও পর্যটকদের জন্য আকর্ষণীয় স্থানগুলোর ওপর তথ্যভিত্তিক প্রতিবেদন। এছাড়াও এ পর্বে বিদেশি প্রতিবেদন করা হয়েছে কাপ্তাই জলবিদ্যুৎ কেন্দ্রের সঙ্গে সামঞ্জস্য রেখে বিশ্বের সর্ববৃহৎ বাঁধ ও বন্যা প্রতিরোধ প্রকল্প নেদারল্যান্ডসের ডেল্টা ওয়ার্কসের ওপর। এ পর্বে একটি বহুশ্রুত জনপ্রিয় গান ‘রাঙা মাটির রঙে চোখ জুড়ালো…’ গেয়েছেন রবি চৌধুরী ও রাঙ্গামাটির চমচমি দেওয়ান। সঙ্গে ছিল স্থানীয় শিল্পীরা। নিয়মিত পর্ব হিসেবে এবারও যথারীতি রয়েছে মামা-ভাগ্নে, নানি-নাতি ও চিঠিপত্র পর্ব। এছাড়াও এবারের ‘ইত্যাদি’তে বিভিন্ন সামাজিক অসঙ্গতি ও সমসাময়িক ঘটনা নিয়ে ছিল বেশ কয়েকটি বিদ্রƒপাত্মক নাট্যাংশ। বরাবরের মতো ইত্যাদির এ পর্বটিও রচনা, পরিচালনা এবং উপস্থাপনা করেছেন হানিফ সংকেত।