কুষ্টিয়ায় মুক্তিযোদ্ধা সমাবেশের আয়োজন

কুষ্টিয়ায় মুক্তিযোদ্ধা সমাবেশের আয়োজন করা হয়েছে। আসছে ২১ সেপ্টেম্বর শনিবার সকাল ১০টায় বঙ্গবন্ধু সুপার মার্কেটে কুষ্টিয়া জেলা আওয়ামীলীগের কার্যালয়ের সভা কক্ষে এ মুক্তিযোদ্ধা সমাবেশের আয়োজন করা হয়েছে। সমাবেশে প্রধান অতিথি হিসেবে উপস্থিত থাকার সদয় সম্মতি জ্ঞাপন করেছেন সাবেক সচিব, সংসদীয় কমিটির সদস্য, বাংলাদেশে আওয়ামীলীগের মুক্তিযুদ্ধ বিষয়ক উপ-কমিটির সভাপতি ও জাতীয় মুক্তিযোদ্ধা কাউন্সিলের খুলনা বিভাগীয় প্রধান যুদ্ধাহত বীর মুক্তিযোদ্ধা রশিদুল আলম। উক্ত সমাবেশে বীর মুক্তিযোদ্ধাগণকে উপস্থিত থাকার জন্য অনুরোধ করেছেন কুষ্টিয়া জেলা আওয়ামীলীগের মুক্তিযুদ্ধ বিষয়ক সম্পাদক-সাংগঠনিক কমান্ডের কমান্ডার ও মুক্তিযোদ্ধা ইউনিট কমান্ডের সাবেক জেলা কমান্ডার বীর মুক্তিযোদ্ধা মানিক কুমার ঘোষ।  সংবাদ বিজ্ঞপ্তি

 

প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার সভাপতিত্বে একনেক বৈঠক

বিভাগীয় শহরগুলোতে ক্যান্সার চিকিৎসাকেন্দ্র স্থাপন প্রকল্প অনুমোদন

ঢাকা অফিস ॥ বিভাগীয় শহরে সরকারি মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে ১০০ শষ্যা বিশিষ্ট ক্যান্সার চিকিৎসাকেন্দ্র স্থাপনসহ মোট আটটি প্রকল্পের চূড়ান্ত অনুমোদন দিয়েছে জাতীয় অর্থনৈতিক পরিষদের নির্বাহী কমিটি (একনেক)। এসব প্রকল্প বাস্তবায়নে মোট ব্যয় হবে ৮ হাজার ৯৬৮ কোটি টাকা। এর মধ্যে সরকারি তহবিল থেকে ৮ হাজার ৯৫২ কোটি ৫৯ লাখ টাকা এবং  বৈদেশিক সহায়তা হিসেবে প্রকল্প সাহায্য পাওয়া যাবে ১৫ কোটি টাকা। গতকাল মঙ্গলবার রাজধানীর শেরেবাংলানগর এনইসি সম্মেলন কক্ষে একনেক চেয়ারপারসন ও প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার সভাপতিত্বে অনুষ্ঠিত একনেক বৈঠকে এ অনুমোদন দেয়া হয়। বৈঠক শেষে পরিকল্পনামন্ত্রী এম এ মান্নান প্রকল্প সম্পর্কে সাংবাদিকদের ব্রিফ করেন। পরিকল্পনামন্ত্রী বলেন, ক্যান্সারের প্রার্দুভাব বেশি হওয়ায় এর প্রতিরোধ করা জরুরি। ভেজাল খাবারসহ নানা কারণে ক্যানসার রোগীর সংখ্যা বাড়ছে।এ কারণে প্রতিটি বিভাগে ক্যান্সার চিকিৎসাকেন্দ্র স্থাপন করা হচ্ছে। আন্তর্জাতিক ক্যান্সার গবেষণা কেন্দ্রের সাম্প্রতিক হিসাবমতে প্রতিবছর বাংলাদেশে দেড় লাখ মানুষ ক্যান্সারে আক্রান্ত হচ্ছে এবং এর মধ্যে ১ লাখ ৮ হাজার এই রোগে মৃত্যুবরণ করে। প্রতিবছর এর সংখ্যা বেড়ে চলেছে। প্রকল্পের মূল উদ্দেশ্য হলো-ক্যান্সারে আক্রান্ত ব্যক্তির প্রাথমিক পর্যায়ে রোগ নির্নয় এবং সেই অনুযায়ী যথাযথ চিকিৎসার ব্যবস্থা করা। এছাড়া স্বাস্থ্য সেবা বিকেন্দ্রীকরণের মাধ্যমে প্রান্তিক জনগোষ্ঠীকে ক্যান্সার চিকিৎসার আওতায় নিয়ে আসা। বিভাগীয় শহরে সরকারি মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে ১০০ শষ্যা বিশিষ্ট পূর্ণাঙ্গ ক্যানসার চিকিৎসা কেন্দ্র স্থাপন প্রকল্প বাস্তবায়নে মোট খরচ হবে ২ হাজার ৩৮৮ কোটি টাকা। স্বাস্থ্য মন্ত্রণালয়ের অধীন স্বাস্থ্য সেবা বিভাগ ২০২২ সালের সেপ্টেম্বর নাগাদ প্রকল্প বাস্তবায়নের কাজ শেষ করবে। একনেক বৈঠকের শুরুতে ড. এপিজে কালাম স্মৃতি এক্সিলেন্স এ্যাওয়ার্ড, ২০১৯ অর্জন করায় প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনাকে অভিনন্দন জানান পরিকল্পনামন্ত্রী এবং ফুলের তোড়া উপহার দেন। জুলাই-আগস্ট এই দুই মাসের বার্ষিক উন্নয়ন কর্মসূচি (এডিপি) বাস্তবায়নের পরিসংখ্যান তুলে ধরে মান্নান বলেন, গত দুই মাসে এডিপি বাস্তবায়ন ৪ দশমিক ৪৮ শতাংশে পৌঁছে গেছে। এ সময়ে খরচ হয়েছে ৯ হাজার ৬২৬ কোটি টাকা। এর আগের অর্থবছরে একই সময়ে এডিপি বাস্তবায়নের হার ছিল ৩ দশমিক ৩৯ শতাংশ। একনেক বৈঠকে প্রধানমন্ত্রী প্রকল্প মনিটারিং ও মূল্যায়ন সক্ষমতা বাড়াতে তদারকি সংস্থা আইএমইডিকে আরো শক্তিশালী করার নির্দেশ দেন। তিনি প্রকল্পের পণ্য ক্রয়ের ক্ষেত্রে দাম নির্ধারণে সতর্ক থাকার তাগিদ দেন। একনেকে অনুমোদিত অন্য প্রকল্পসমূহ হলো: ময়মনসিংহ ফুলপুর-নকলা-শেরপুর আঞ্চলিক মহাসড়ক উন্নয়ন প্রকল্প, এর খরচ ধরা হয়েছে ৮৫৫ কোটি টাকা,রাজশাহী-নওহাটা-চৌমাসিয়া সড়কের বিন্দুর মোড় হতে বিমান বন্দর হয়ে নওহাটা ব্রিজ পর্যন্ত পেভমেন্ট চার লেনে উন্নীতকরণ প্রকল্পের বাস্তবায়ন খরচ হবে ৩২৬ কোটি টাকা। রাজশাহী মহানগরীর উপশহর মোড় থেকে সোনাদিঘী মোড় এবং মালোপাড়া মোড় থেকে সাগরপাড়া মোড় পর্যন্ত সড়ক প্রশস্তকরণ ও উন্নয়ন প্রকল্প, এর ব্যয় হবে ১২৬ কোটি টাকা। এছাড়া আশ্রয়ন-২ প্রকল্প বাস্তবায়নে ব্যয় হবে ৪ হাজার ৮২৬ কোটি টাকা, জুনোসিস এবং আন্ত:সীমান্তীয় প্রাণিরোগ প্রতিরোধ ও নিয়ন্ত্রণ গবেষণা প্রকল্পের ব্যয় ধরা হয়েছে ১৫০ কোটি টাকা। স্ট্রেংদেইনিং মনিটরিং অ্যান্ড ইভালুয়েশন ক্যাপাবিলিটিজ অব আইএমইডি প্রকল্প বাস্তবায়ন খরচ ৬৮ কোটি ৮৫ লাখ টাকা। ভারতের ঝাড়খন্ড থেকে বাংলাদেশে বিদ্যুৎ আমদানির লক্ষ্যে চাঁপাইনবাবগঞ্জ জেলার রহনপুর থেকে মনাকষা সীমান্ত দিয়ে ৪০০ কেভি সঞ্চালন লাইন নির্মাণ প্রকল্পের খরচ ধরা হয়েছে ২২৫ কোটি টাকা।

কাশ্মীরের সিদ্ধান্ত প্যাটেলের অনুপ্রেরণায় – মোদী

ঢাকা অফিস ॥ সরদার বল¬ভভাই প্যাটেলের দর্শনে অনুপ্রাণিত হয়ে ভারতের কেন্দ্রীয় সরকার জম্মু ও কাশ্মীরের বিশেষ মর্যাদা বাতিল করেছে বলে মন্তব্য করেছেন দেশটির প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদী। মঙ্গলবার নিজের ৬৯তম জন্মদিনের দিন গুজরাটে এক জনসভায় তিনি একথা বলেছেন, জানিয়েছে এনডিটিভি। গুজরাটের সফলতা পুরো দেশের জন্য একটি মডেল হিসেবে বিবেচিত হওয়া উচিত বলেও জনসভায় মন্তব্য করেছে মোদী। জীবনমানে উন্নতির অভিজ্ঞতা অন্যান্যদের জানাতে ও তাদের সহায়তা করতে রাজ্যটির বাসিন্দাদের প্রতি আহ্বান জানিয়েছেন তিনি। মোদীর এই সমাবেশ হয়েছে গুজরাটের কেভাদিয়াতে; এখানেই নর্মদা নদীর উপর ‘স্ট্যাচু অব ইউনিটি’ খ্যাত সর্দার প্যাটেলের বিশাল মূর্তি তৈরি করা হয়েছে। কয়েক দশকের পুরনো সমস্যা সমাধানের চেষ্টায় যার দর্শন কাজে লাগছে বলে জানিয়েছে মোদী। প্যাটেলের দর্শন অনুসারেই জম্মু ও কাশ্মীরকে দুটি কেন্দ্রশাসিত অঞ্চলে পরিণত করা হয়েছে বলে জানান ভারতের প্রধানমন্ত্রী। পাশাপাশি এখন থেকে প্রতিবছরের ১৭ সেপ্টেম্বরকে ‘হায়দরাবাদ মুক্ত দিবস’ হিসেবে পালনেরও ঘোষণা দেন তিনি। ১৯৪৮ সালের এদিনই হায়দরাবাদ ভারতীয় ইউনিয়নভুক্ত হয়েছিল। ‘স্ট্যাচু অব ইউনিটি’র কথা বলতে গিয়ে মোদী গতবছর উন্মুক্ত হওয়ার পর থেকে এই মূর্তি দেখতে আসা দর্শনার্থীর সংখ্যা দিন দিন বাড়তে থাকায় সন্তোষ প্রকাশ করেন। সর্দার প্যাটেলের জন্মবার্ষিকীতে গত বছরের ৩১ অক্টোবর মোদী বিশ্বের সবচেয়ে উঁচু এ মূর্তিটি উদ্বোধন করেছিলেন। নর্মদা নদীর উপর নির্মিত বাঁধ সর্দার সরোবর প্রজেক্ট গুজরাট, মধ্যপ্রদেশ, মহারাষ্ট্র ও রাজস্থানের জনগণের উপকারে আসছে বলে জানান ভারতের প্রধানমন্ত্রী। এদিন তিনি স্থানীয় কেভাদিয়ার প্রজাপতি গার্ডেন পরিদর্শন করে সেখানকার একটি গেরুয়া রঙের টাইগার প্রজাপতিকে ‘রাজ্য প্রজাপতি’ হিসেবে নামকরণ করেন বলে এনডিটিভি জানিয়েছে।

ইসলামিয়া কলেজে রেড ক্রিসেন্টের প্রশিক্ষণ শেষে সনদ বিতরনকালে আসগর আলী

সেবার মাধ্যমে সৃষ্টিকর্তার সন্তুষ্টি অর্জন সম্ভব

নিজ সংবাদ ॥ কুষ্টিয়া জেলা আওয়ামীলীগের সাধারন সম্পাদক ও রেড ক্রিসেন্ট সোসাইটি কুষ্টিয়া ইউনিটের সাধারন সম্পাদক আসগর আলী বলেছেন, মানব কল্যানে কাজ করা সর্বোত্তম সেবা। এই সেবার মাধ্যমে সৃষ্টিকর্তার সন্তুষ্ঠি অর্জন সম্ভব । তিনি গতকাল মঙ্গলবার দুপুরে কুষ্টিয়া ইসলামীয়া কলেজ রেড ক্রিসেন্ট ইউনিটের সদস্যদের তিন দিনের প্রশিক্ষন শেষে সনদপত্র বিতরনকালে  একথা বলেন।

কলেজের প্রিন্সিপাল নওয়াব আলীর সভাপতিত্বে অনুষ্ঠানে আসগর আলী বলেন, আমাদের সকলকে সেবার মানসিকতায় কাজ করতে হবে। সেবার মাধ্যমে নিজের উৎকর্ষ সাধন করা সম্ভব। তিনি বলেন, নতুন প্রজম্ম আমাদের জন্য আশির্বাদ, এই প্রজম্মকে পুথিগত শিক্ষার পাশাপাশি  নীতি, নৈতিকতা বিষয়ে শিক্ষা অর্জন করতে হবে। দেশের প্রতি ভালবাসা এবং দেশ মাতৃকায় নিজেদের আত্ম নিয়োগ করতে  হবে। তিনি আরো বলেন, জাতির জনক বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমান নিজের জীবনকে বাজি রেখে দেশকে স্বাধীন করেছিলেন। তাঁর আত্ম ত্যাগের বিনিময়ে আমরা একটি লাল সবুজের পতাকার নীচে সমবেত হতে পেরছিলাম মহান মুক্তিযুদ্ধের মাধ্যমে। তিনি বলেন, দুযোর্গ মোকাবিলায় আমাদের সক্ষমতা অর্জন করতে হবে। তারই ধারবাহিকতায় বিপদকালীন মুহুর্তে আমাদের প্রস্তুতি বিষয়ে শিক্ষা জ্ঞান থাকা জরুরী। তিনি বলেন, স্কুল কলেজ ও বিশ্ববিদ্যালয়ের শিক্ষার্থীরা রেড ক্রিসেন্ট সোসাইটির মাধ্যমে প্রশিক্ষন গ্রহন করে নিজেদের যোগ্যভাবে গড়ে তুলতে সক্ষম হয়েছে। আশা করি আগামীতে এই ধরনের প্রশিক্ষনের মাধ্যমে এই ইউনিটের কার্যক্রমের আরো পরিধি বিস্তার করবে। তিনি ইসলামীয়া কলেজ রেড ক্রিসেন্ট সোসাইটির ইউনিটের ভুয়সী প্রশংসা করেন। পরে তিনি ৫৩জন প্রশিক্ষনার্থীর হাতে প্রশিক্ষনের সনদ পত্র তুলে দনে।

এসময় বক্তব্য রাখেন কলেজ শিক্ষক পরিষদের সাধারন সম্পাদক  ইংরেজি বিভাগের শিক্ষক রুমানা ইয়াসমীন, প্রশিক্ষনার্থীদের মধ্যে থেকে বক্তব্য রাখেন মেহেদী হাসান ও প্রিয়া খাতুন। এসময় উপস্থিত ছিলেন কলেজের বিভিন্ন বিভাগের শিক্ষকবৃন্দ। অনুষ্ঠান পরিচালনা করেন রেড ক্রিসেন্ট সোসাইটি কুষ্টিয়ার ইউনিট লেবেল অফিসার লিটন কুমার। রেডক্রস ও রেড ক্রিসেন্ট সোসাইটির কুষ্টিয়ার উদ্যোগে ইসলামিয়া কলেজে প্রাথমিক চিকিৎসা শিক্ষা বিষয়ক প্রশিক্ষণ গত রবিবার থেকে শুরু হয়। দুর্যোগের ঝুঁকি হ্রাস করণের সক্ষমতা বৃদ্ধির লক্ষে ইসলামিয়া কলেজের রেড ক্রিসেন্ট ইউনিটের ৫৩জন শিক্ষাথী এই প্রশিক্ষন গ্রহন করেন।

সমসাময়িক ইস্যুতে আয়োজিত সংবাদ সম্মেলনে ওবায়দুল কাদের

প্রয়োজনে দলের ভেতরে শুদ্ধি অভিযান চালানো হবে

ঢাকা অফিস ॥ দুর্নীতি ও অপকর্ম প্রতিরোধে প্রয়োজনে দলের ভেতরে শুদ্ধি অভিযান চালানো হবে বলে জানিয়েছেন আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক এবং সড়ক পরিবহন ও সেতুমন্ত্রী ওবায়দুল কাদের। তিনি বলেন, ‘ছাত্রলীগের বিষয়টা একটি নজিরবিহীন ঘটনা ঘটল। ইতিহাসে যা ঘটেনি। গোয়েন্দা সংস্থাগুলোকে বলা হয়েছে রিপোর্ট নেয়ার জন্য, কোথাও কোনো অপকর্ম হলে যথাযথ তথ্য দিতে। ভবিষ্যতে তাদের দেয়া তথ্যের ভিত্তিতে প্রয়োজনে দলের ভেতরে শুদ্ধি অভিযান চালানো হবে। কাউকেই ছাড় দেয়া হবে না। ওবায়দুল কাদের গতকাল মঙ্গলবার সচিবালয়ে মন্ত্রণালয়ের সভা কক্ষে সমসাময়িক ইস্যুতে আয়োজিত সংবাদ সম্মেলনে সাংবাদিকদের এক প্রশ্নের জবাবে তিনি এ কথা বলেন। আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক বলেন, অনিয়ম-দূর্নীতির সাথে যারা জড়িত তাদের বিরুদ্ধে সরকার ব্যবস্থা নিচ্ছে। সরকার দূর্নীতির বিরুদ্ধে জিরো টলারেন্স নীতি গ্রহণ করেছে। আমাদের দলের কেউ যদি অন্যায় করে তাহলে তাকেও ছাড় দেওয়া হবে না। অপকর্ম করলে সবাইকে শাস্তি পেতে হবে।’ তিনি বলেন, বাংলাদেশে এই প্রথম শৃঙ্খলা ভঙ্গের অভিযোগে ছাত্রলীগের সভাপতি ও সাধারণ সম্পাদকের বিরুদ্ধে নজিরবিহীন শাস্তিমূলক ব্যবস্থা নেওয়া হলো। তাদের বিরুদ্ধে সাংগঠনিক ব্যবস্থা নেওয়া হয়েছে এবং বাধ্যতামূলক পদত্যাগ করানো হয়েছে। বাংলাদেশের অন্য কোন ছাত্র সংগঠনে এ ধরনের ব্যবস্থা গ্রহনের নজির নেই। আগামী ডিসেম্বরে আওয়ামী লীগের জাতীয় সম্মেলন, সাধারণ সম্পাদক হিসেবে আপনিসহ আরও কয়েকজনের নামও আসছে- এ বিষয়ে দৃষ্টি আকর্ষণ করা হলে ওবায়দুল কাদের বলেন, ‘আমাদের পার্টির সভাপতি শেখ হাসিনা। আমাদের পার্টিতে বারে বারে যেটা হয় দলের কাউন্সিলরা সব সময় নেতৃত্ব নির্বাচনে নেত্রীর মাইন্ড সেটের উপর সবকিছু ছেড়ে দেয়। জেনারেল সেক্রেটারি পদটি পার্টি প্রধানের নির্দেশনায় চলে। এখানে প্রার্থী হওয়ার অধিকার সবার আছে।’ তিনি বলেন, নেত্রীর ইচ্ছার বাইরে আসলে কিছু হয় না। নেত্রী জেনারেল সেক্রেটারি হিসেবে যাকেই চয়েজ করেন আওয়ামী লীগের কর্মী-কাউন্সিলররা তার প্রতি সবাই ঝুঁকে পড়ে। আরেকবার আমি থাকব কিনা এটা নির্ভর করে নেত্রীর উপর। তিনি নতুন কিছুও ভাবতে পারেন। নতুন মুখও চাইতে পারেন। তিনি যদি বলেন থাকতে, থাকব। তিনি যদি বলেন দায়িত্বের পরিবর্তন হবে, আমার কোনো আপত্তি নেই। জাহাঙ্গীরনগর বিশ্ববিদ্যালয়ের (জাবি) উপাচার্য অধ্যাপক ফারজানা ইসলামের দুর্নীতির অভিযোগ তদন্তে দোষী প্রমাণিত হলে তার বিরুদ্ধে ব্যবস্থা নেয়া হবে জানিয়ে ওবায়দুল কাদের বলেন, ‘ভিসির পদত্যাগ কী কারণে, নৈতিক স্খলন। তিনি যদি কোনো অন্যায় করে থাকেন, এখানে যদি তার কোনো অপকর্মে সংশ্লি¬ষ্টতা থাকে, তদন্তে যদি এটা প্রমাণিত হয় তাহলে অবশ্যই তার বিরুদ্ধেও ব্যবস্থা নেওয়া হবে। তিনিও তো আইনের ঊর্ধ্বে নন।’ বিএনপি মহাসচিব মির্জা ফখরুল ইমলাম আলমগীরের জাবি ভিসির পদত্যাগ দাবির বিষয়ে ওবায়দুল কাদের বলেন, মির্জা ফখরুলতো সবার পদত্যাগ দাবি করছেন। তিনি প্রধানমন্ত্রীর পদত্যাগও দাবি করেছেন। তিনি নিজেই নিজের পদত্যাগ দাবি করেছেন। তিনি নির্বাচনে জিতেও পদত্যাগ করেছেন। আবার কথা রাখতে পারেননি, ওই শূন্য জায়গায় নিজেই আরেকজনকে মনোনয়ন দিয়ে নির্বাচিত করে সংসদে পাঠিয়েছেন। আওয়ামী লীগের সাধালণ সম্পাদক বলেন, এই দ্বিচারিতায় তাদের যে ভালো ভালো কথার দাম নেই। তারা নিজেরা বলে একটা, করে আরেকটা। তারা নিজেরাই গণতন্ত্রে বিশ্বাস করে না। নিজের দলের যখন গণতন্ত্রের সংকট তারা দেশের গণতন্ত্র নিয়ে যখন কথা বলে তখন সাধারণ মানুষ বিষয়টিকে হাস্যকরই মনে করবে।

 

কুষ্টিয়ায় ডেঙ্গুতে প্রাণ গেল ৫ নারীর

ভেড়ামারায় ডেঙ্গু আক্রান্ত হয়ে ৫ম শ্রেণীর স্কুল ছাত্রীর মৃত্যু

নিজ সংবাদ ॥ কুষ্টিয়ার ভেড়ামারায় ডেঙ্গুতে আক্রান্ত হয়ে মারা গেছেন যুথি নামে ৫ম শ্রেণীর এক স্কুল ছাত্রী। গতকাল মঙ্গলবার বিকেল ৪টার দিকে তার মৃত্যু হয়। যুথি ভেড়ামারা উপজেলার ধরমপুর ইউনিয়নের নবগাঙ্গা গ্রামের জয়নাল আলীর মেয়ে। কুষ্টিয়া সিভিল সার্জন ডা. রওশন আরা এ তথ্য নিশ্চিত করেছেন। এনিয়ে ডেঙ্গুতে আক্রান্ত হয়ে জেলায় ৫জন নারীর মৃত্যু হলো।

কুষ্টিয়া সিভিল সার্জন ডা. রওশন আরা জানান, যুথি ডেঙ্গু জ্বরে আক্রান্ত হয়ে ১৩ সেপ্টেম্বর কুষ্টিয়া জেনারেল হাসপাতালে ভর্তি হয়। হাসপাতালে চিকিৎসা শেষ না করে তার পরিবারের সদস্যরা যুথিকে বাড়ি নিয়ে যায়। গতকাল মঙ্গলবার দুপুরে যুথির অবস্থার অবনতি হলে তাকে ভেড়ামারা উপজেলা স্বাস্থ্য কমপে¬ক্সে ভর্তি করা হয়। সেখানে কর্তব্যরত চিকিৎসক প্রাথমিক চিকিৎসা দিয়ে উন্নত চিকিৎসার জন্য রাজশাহী মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে রেফার্ড করেন। রাজশাহী মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে নেওয়ার পথে তার মৃত্যু হয়। এনিয়ে ভেড়ামারা উপজেলাতেই ডেঙ্গুতে আক্রান্ত হয়ে ৩ জনের মৃত্যু হল। এর আগে ১৪ সেপ্টেম্বর কুষ্টিয়ার ভেড়ামারায় ডেঙ্গুতে আক্রান্ত হয়ে রওশনারা খাতুন (৫৫) নামে আরও এক নারীর মৃত্যু হয়েছে। নিহত নারী ভেড়ামারা উপজেলার জুনিয়াদহ ইউনিয়নের ঠাকুর দৌলতপুর গ্রামের মোসলেম উদ্দিনের স্ত্রী। একই উপজেলায় ১০ সেপ্টেম্বর উপজেলা স্বাস্থ্য কমপে¬ক্সে মিনা খাতুন নামে এক গৃহবধু ডেঙ্গুতে আক্রান্ত হয়ে মারা যান। তিনি ভেড়ামারা উপজেলার ধরমপুর ইউনিয়নের কাজিহাটা গ্রামের রায়হান আলীর স্ত্রী। এছাড়াও গত ৩ সেপ্টেম্বর বিকেলে কুষ্টিয়ার দৌলতপুরে জোসনা খাতুন নামে অপর এক নারী ডেঙ্গুতে আক্রান্ত মারা যান। সে দৌলতপুর উপজেলার খলিশাকুন্ডি ইউনিয়নের শ্যামনগর গ্রামের আসাদুজ্জামান মঙ্গলের স্ত্রী। এছাড়াও ডেঙ্গুতে আক্রান্ত হয়ে গত ১৯ আগষ্ট রাজশাহী মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে দৌলতপুরের বিলগাথুয়া গ্রামের চালন বেগম নামে আরও এক গৃহবধুর মৃত্যু হয়েছে। নিহত গৃহবধু দৌলতপুর উপজেলার সীমান্ত সংলগ্ন বিলগাথুয়া গ্রামের বিল¬াল হোসেনের স্ত্রী এবং ভেড়ামারা উপজেলার লাল্টু ড্রাইভারের মেয়ে। এদিকে ডেঙ্গু আক্রান্তের সংখ্যা প্রতিদিনই বাড়ছে। এরমধ্যে দৌলতপুর ও ভেড়ামারায় আক্রান্তের সংখ্যা বেশী। গতকাল মঙ্গলবার দুপুর পর্যন্ত জেলায় মোট ১০০২ জন ডেঙ্গু রোগী চিকিৎসা নিয়েছে বলে কুষ্টিয়া সিভিল সার্জন ডা. রওশন আরা নিশ্চিত করেছেন। তিনি আরও জানান বর্তমানে ডেঙ্গুতে আক্রান্ত ৯৮জন রোগী কুষ্টিয়া জেনারেল হাসপাতালে চিকিৎসা নিচ্ছেন।

বিমানের ‘রাজহংস’ উদ্বোধন করলেন প্রধানমন্ত্রী

ঢাকা অফিস ॥ প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা বিমান বাংলাদেশ এয়ারলাইন্সের চতুর্থ ড্রিমলাইনার ‘রাজহংস’ উদ্বোধন করেছেন। প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা গতকাল মঙ্গলবার বিকেলে হযরত শাহজালাল আন্তর্জাতিক বিমানবন্দর (এইচএসআইএ)’র ভিভিআইপি টারমাকে ফিতা কেটে আনুষ্ঠানিকভাবে জাতীয় পতাকাবাহী বিমান বাংলাদেশ এয়ারলাইন্সের সদ্যক্রয়কৃত এয়ারক্রাফট ‘রাজহংস’ উদ্বোধন করেন। উদ্বোধনের পরে শেখ হাসিনা বিমানের অভ্যন্তরে পরিদর্শন করেন এবং বিমানের পাইলট ও অন্যান্য ক্রু’দের সঙ্গে কথা বলেন। এ উপলক্ষে দেশ ও জাতির অব্যাহত শান্তি, অগ্রগতি ও সমৃদ্ধি কামনা করে মোনাজাত করা হয়। গত ১৪ সেপ্টেম্বর বাংলাদেশ বিমানের বহরে চতুর্থ বোইং ৭৮৭-৮ ড্রিমলাইনার যুক্ত হয়েছে। এটি জাতীয় পতাকাবাহী ‘বিমানের’ বহরে যুক্ত হওয়া ১৬তম বিমান। বিমানটি যুক্তরাষ্ট্রের সিয়াটলের বিমান কারখানা থেকে ওই দিনই বিকেলে সরাসরি হযরত শাহজালাল আন্তর্জাতিক বিমান বন্দরে অবতরণ করে। বিমানের ভারপ্রাপ্ত ব্যবস্থাপনা পরিচালক ও প্রধান নির্বাহী কর্মকর্তা (সিইও) ক্যাপ্টেন ফারহাত হাসান জামিল ও অন্যান্য উচ্চ পদস্থ কর্মকর্তারা জলকামান স্যাল্যুট জানিয়ে বিমানবন্দরে ড্রিমলাইনারটি গ্রহণ করেন। এর আগে, গত বছরের আগস্ট ও ডিসেম্বর মাসে প্রথম ও দ্বিতীয় বোয়িং ৭৮৭-৮ ড্রিমলাইনার ‘আকাশ বীনা’ ও ‘হংসবলাকা’ ঢাকায় এসে পৌঁছায়। গত জুলাই মাসে তৃতীয় বোয়িং ৭৮৭-৮ ড্রিমলাইনার ‘গাঙচিল’ ঢাকায় অবতরণ করে। বিমানে একটি সূত্র জানায়, প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা ড্রিমলাইনারগুলোর নাম রাখেন। বিমান বাংলাদেশ এয়ারলাইন্স ২০০৮ সালে মার্কিন বিমান নির্মাতা প্রতিষ্ঠান বোয়িং কোম্পানির ১০টি নতুন বিমান ক্রয়ের জন্য ২ দশমিক ১ বিলিয়ন মার্কিন ডলারের একটি চুক্তি করে। চুক্তি অনুযায়ী বোয়িং ইতোমধ্যেই চারটি ৭৭৭-৩০০ইআর ও দু’টি ৭৩৭-৮০০ এবং চারটি ড্রিমলাইনার বিমানকে হস্তান্তর করেছে। ২৭১ আসনের ‘রাজহংস’ বোয়িং ৭৮৭-৮ কে অন্যান্য বিমানের তুলনায় ২০ শতাংশ জ্বালানী সাশ্রয়ী বিমান হিসেবে তৈরি করা হয়েছে। বিমানটি ঘন্টায় ৬৫০ মাইল বেগে একটানা ১৬ ঘন্টা উড়তে সক্ষম। বিমানটি ৪৩ হাজার ফুট উচ্চতায় ওয়াইফাই পরিষেবা দেবে। এর ফলে যাত্রীরা আকাশ থেকে ইন্টারনেটের সাহায্যে বিশ্বের যে কোন স্থানে তাদের বন্ধুবান্ধব ও পরিবারের সদস্যদের সঙ্গে যোগাযোগ করতে পারবেন।

নতুন উড়োজাহাজ ‘রাজহংস’ উদ্বোধনকালে প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা

টানা ক্ষমতায় থাকার কারণেই সুফল পাচ্ছে জনগণ

ঢাকা অফিস ॥ প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা বলেছেন, একটানা ক্ষমতায় থাকার কারণেই দেশের উন্নয়ন হচ্ছে, সুফল পাচ্ছে জনগণ। গতকাল মঙ্গলবার বিকাল ৪টায় হযরত শাহজালাল আন্তর্জাতিক বিমানবন্দরের (এইচএসআইএ) ভিভিআইপি টারমাকে ফিতা কেটে নতুন উড়োজাহাজ ‘রাজহংস’ উদ্বোধন শেষে এক অনুষ্ঠানে তিনি এ কথা বলেন। এর আগে বিমানের বহরে যুক্ত হওয়া অত্যাধুনিক প্রযুক্তির চতুর্থ ও শেষ ড্রিমলাইনার ‘রাজহংস’ উদ্বোধন করেন প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা। উদ্বোধন শেষে অনুষ্ঠানে বিমান বাংলাদেশ এয়ারলাইনসকে নিয়ে সরকারপ্রধান বলেন, বিমানের যে অবস্থা ছিল সেটি আর বলার অপেক্ষা রাখে না। আমরা যখন বাহিরে যেতাম বা বিশেষ করে লন্ডনে বা আমেরিকায় যাওয়া হতো তখন বিমান ব্যবহার করতাম। তখন বিমানের যে ঝরঝরে অবস্থা ছিল, আগে প্লেনে উঠলে পানি পড়ত, টিস্যু দিয়ে পানি পড়া বন্ধ করা হতো, কোনো এন্টারটেইমেন্টের ব্যবস্থাই ছিল না। মাঝে মাঝে আমি ককপিটে যেতাম, কথা বলতাম। কারণ আমি ভাবতাম এরকম একটা ঝরঝরে অবস্থায় প্লেন কীভাবে আমাদের পাইলটরা চালায়। আমি বলতাম যে, আমাদের পাইলটদের বিশ্বসেরা পাইলট হিসেবে তাদের স্বীকৃতি দেয়া উচিত এই ধরনের একটা ঝরঝরে প্লেন চালানোর জন্য। তিনি বলেন, মাঝে মাঝে আমরা ঠাট্টা করতাম যে, আমাদের ঢাকা শহরে এক সময় যে বাসগুলো চলতো সেগুলো খুবই বিধ্বস্ত অবস্থায় ছিল। সেগুলোকে আমরা ডাকতাম মুড়ির টিন বলে। এরকম একটা অবস্থা ছিল আমাদের বিমানে। শেখ হাসিনা বলেন, স্বাভাবিকভাবেই বিরোধী দলে ছিলাম তখন কিছু করার ক্ষমতা ছিল না। কিন্তু মনে মনে একটা আকাঙ্খা ছিল যে, যখনই সময় পাব এ অবস্থা থেকে বিমানকে উত্তরণ ঘটাব। তৎকালীন বিএনপি সরকারের কথা উল্লেখ করে তিনি বলেন, তখন যারা ক্ষমতায় ছিল তখন দেশের দিকে তাকানো, জনগণের দিকে তাকানো বা দেশের অবস্থান দেখার খুব একটা দৃষ্টি ছিল না। যেহেতু তাদের ক্ষমতা দখল ছিল অবৈধভাবে প্রেসিডেন্সির ক্ষমতা নিয়েছিল, তাই স্বাভাবিকভাবেই তাদের সেই ক্ষমতা নিষ্কণ্টক করার দিকে যতটা দৃষ্টি ছিল, ততটা দৃষ্টি দেশের উন্নয়নে ছিল না। তারা শুধু রুটিন ওয়ার্ক করে যেত। প্রধানমন্ত্রী বলেন, সেই অবস্থান থেকে উত্তোরণ ঘটানোর জন্য যখনই আমরা ক্ষমতায় এসেছি, আমরা প্রচেষ্টা চালিয়েছি। আজকে বাংলাদেশ একটা উন্নয়নের রোল মডেল হিসেবে বিশ্বে স্বীকৃতি পেয়েছে। আমাদের প্রবৃদ্ধি অর্জন অনেক বেশি। অনেক দ্রুত প্রবৃদ্ধি অর্জন করেছি। পৃথিবীর বহু দেশ দ্রুত প্রবৃদ্ধি অর্জন করলেও তাদের মূল্যস্ফীতি বেশি। আমরা প্রবৃদ্ধির পাশাপাশি মূল্যস্ফীতি ধরে রাখতে পেরেছি। বিমান বাংলাদেশ এয়ারলাইনস প্রসঙ্গে শেখ হাসিনা বলেন, ইতিমধ্যেই আমাদের দশটি প্লেন চলে এসেছে। অরুণ আলো, গাঙচিল ও পালকী, হংসবলাকা, আকাশ প্রদীপ, রাঙা প্রভাত, মেঘদূত, আকাশবীণা, ময়ূরপঙ্খী ও রাজহংস। এসব নামকরণ আমি করেছি। আমরা চেয়েছি যে একটা সুন্দর নামকরণ হোক। তিনি বলেন, ৭৮৭ বোয়িং চারটি এসেছে। আরও তিনটি বিমান আমরা কিনব। একটানা ক্ষমতায় থাকার কারণেই দেশের উন্নয়ন হচ্ছে, সুফল পাচ্ছে জনগণ।

হেরে যাওয়া ওই দুই ম্যাচেই জয়ের উপকরণ খুঁজে পাচ্ছে জিম্বাবুয়ে

ক্রীড়া প্রতিবেদক ॥ চট্টগ্রামের জহুর আহমেদ চৌধুরী স্টেডিয়ামে গতকাল মঙ্গলবার ঘাম ঝরিয়েছে জিম্বাবুয়ে দল। আজ বুধবার এই মাঠেই তাদের লড়াই টুর্নামেন্টে টিকে থাকার। প্রতিপক্ষ বাংলাদেশ। টুর্নামেন্টের প্রথম ম্যাচে বাংলাদেশকে প্রায় হারিয়েই দিয়েছিল জিম্বাবুয়ে। কিন্তু শেষ পর্যন্ত তারা পেরে ওঠেনি আফিফ হোসেনের অসাধারণ এক ইনিংসের সঙ্গে। পরের ম্যাচে আফগানিস্তানকেও তারা চাপে রাখতে পেরেছিল একটা পর্যায় পর্যন্ত। চতুর্দশ ওভারে আফগানদের রান ছিল ৪ উইকেটে ৯০। সেখান থেকে নাজিবউল¬াহ জাদরান ও মোহাম্মদ নবির ব্যাটিং তান্ডব দলের রানকে নিয়ে যায় ধরাছোঁয়ার প্রায় বাইরে। হেরে যাওয়া ওই দুই ম্যাচেই জয়ের উপকরণ খুঁজে পাচ্ছেন উইলিয়ামস। দলের অনুশীলন শেষে এই অলরাউন্ডার জানালেন, ছোট ছোট কিছু ব্যাপার ঠিকঠাক করতে পারলেই ধরা দেবে জয়। “বাংলাদেশের বিপক্ষে আমাদের জিততেই হবে। আসলে পরের দুটি ম্যাচই আমাদের আবশ্যিক জয়ের ম্যাচ। আমরা যদি মৌলিক দিকগুলো ঠিকঠাক করতে পারি যেমন ফিল্ডিং, কিছু সূক্ষ্ম ব্যাপার আছে, সেগুলো যদি ঠিকঠাক করতে পারি, দুটি ম্যাচ জয়েরই ভালো সম্ভাবনা আছে আমাদের।” “আগের দুটি ম্যাচেই আমরা উভয় দলকে কঠিন সময় দিয়েছি, শেষ ওভার পর্যন্ত টেনে নিয়েছি। সামনে যদি মাঠে সময়মতো ভালো সিদ্ধান্ত আরও নিয়মিতভাবে নিতে পারি, আমাদের এগিয়ে যাওয়ার ভালো সম্ভাবনা আছে।” অন্য দুই দলের সঙ্গে ব্যবধান খুব বেশি মনে করেন না বলেই ফাইনালের লড়াইয়ে টিকে থাকতে প্রত্যয়ী উইলিয়ামস। “অবশ্যই (ফাইনালে খেলা সম্ভব), আমি সবসময়ই বিশ্বাস করি। খেলাটায় পার্থক্য গড়ে সূক্ষ্ম কিছু বিষয়…কিছুই অসম্ভব নয়। আমরা মাঠে নেমে সর্বোচ্চটা উজাড় করে দেব।”

 

 ‘সাপলুডু’র গল্প নিয়ে উচ্ছ্বসিত মিম

বিনোদন বাজার ॥ চলতি বছরে শুরুর দিকে সিনেমা নিয়ে ঢালিউডে আলোচনা চললেও মাঝে ঈদ ছাড়া খুব একটা আলোচনা ছিল না। এমনকি ঈদেও সিনেমার সংখ্যা ছিল কম। এ বছর রোজার ঈদে সিনেমার সংখ্যা ছিল মাত্র তিনটি। যা কোরবানি ঈদে আরো কমে দাঁড়ায় দুইটিতে। তবে চলতি মাসে ঢাকাই সিনেমার অবস্থাটা অনেকটাই ভালো। মুক্তির তালিকায় রয়েছে বেশ কয়েকটি সিনেমা। এরইমধ্যে মুক্তি পেয়েছে ‘মায়াবতি’ ও ‘অবতার’ শিরোনামে দুটি সিনেমা। আগামী ২৭ সেপ্টেম্বর মুক্তি পাবে বিদ্যা সিনহা মিম অভিনীত ‘সাপলুডু’ সিনেমাটি। এরমধ্যে সিনেমার গানগুলো অডিও আকারে প্রকাশ পেয়েছে। থ্রিলার ধরণার এই সিনেমাটি পরিচালনা করেছেন গোলার সোহরাব দোদুল।

সিনেমাটি প্রসঙ্গে মিম বলেন, ‘এই সিনেমার গল্পটি নিয়েই সবচেয়ে বেশি উচ্ছ্বসিত আশি। গল্পই এই সিনেমার মূল নায়ক। এই ধরনের গল্প সাধারণত পাওয়া যায় না। স্ট্র্যাগল করা একজন মেয়ের চরিত্রে আমাকে এই সিনেমায় দেখা যাবে।’মিম চলতি সময়ে ময়মনংসিহে ‘পরাণ’ শিরোনামে একটি সিনেমা নিয়ে ব্যস্ত রয়েছেন। এই মাসের শুরুতে তিনি এ ছবির শুটিং শুরু করছেন। ছবিটিতে তার বিপরীতে অভিনয় করছেন শরিফুল রাজ ও ইয়াশ রোহান । ঢাকাই সিনেমার পাশাপাশি কলকাতাতেও এখন বেশ জনপ্রিয়ম মিম। এরইমধ্যে কলকাতার একক প্রযোজনাতেও অভিনয় করেছেন তিনি। চলতি বছর কলকাতায় তার ‘থাই কারি’ সিনেমাটি মুক্তি পায়। সিনেমাটি পরিচালনা করেছেন আঙ্কিত আদিত্য। এখানে আবারো সোহমের সাথে জুটি বাঁধেন মিম। বর্তমানে কলকাতায় কোনো ব্যস্ততা না থাকলেও দেশে সামনে আরো কয়েকটি সিনেমায় ব্যস্ত থাকতে দেখা যাবে এই জনপ্রিয় নায়িকাকে।

ভেষজ উদ্ভিদ চাষের গুরুত্ব ও সম্ভাবনা

কৃষি প্রতিবেদক ॥ সৃষ্টির শুরু থেকেই পৃথিবীতে মানুষের অস্তিত্ব টিকিয়ে রাখতে ভেষজ ওষুধ গুরুত্বপূর্ণ অবদান রেখে আসছে। বাংলাদেশসহ পৃথিবীর প্রায় সর্বত্রই যুগ যুগ ধরে বিভিন্নরূপে ও বিভিন্ন নামে মানুষের স্বাস্থ্য পরিচর্যায়  ভেষজ ওষুধ ব্যবহৃত হচ্ছে। ফলিত ও প্রযুক্তি বিজ্ঞানের চরম উৎকর্ষতার কারণে বর্তমানে ভেষজ ওষুধের উপযোগিতা শেষ হয়েছে বলে অনেকে মনে করলেও সে ধারণা দিনে দিনে ভুল প্রমাণিত হচ্ছে। নব নব বৈজ্ঞানিক আবিষ্কারে ভেষজ ওষুধ প্রতিনিয়ত সমৃদ্ধ হচ্ছে। ভেষজ ওষুধ অবশ্যই বিজ্ঞানসম্মত ও কার্যকরী। এ ব্যাপারে কোনো সন্দেহের অবকাশ নেই।  ভেষজ ওষুধের গুণাগুণ ও কার্যকারিতা নিয়ে প্রশ্ন উত্থাপিত সামগ্রিকভাবে ঔষধ বিজ্ঞান তথা আধুনিক অ্যালোপ্যাথিক ওষুধও সমভাবে প্রশ্নের সম্মুখীন হবে। কারণ এসব ওষুধের আদি ও মূল ভিত্তিও ভেষজ উদ্ভিদ এবং এখনো অসংখ্য আধুনিক অ্যালোপ্যাথিক ওষুধ সরাসরি উদ্ভিজ্জ দ্রব্য এবং সেগুলোর নিষ্কাশিত রাসায়নিক উপাদান দিয়ে তৈরি হয়ে থাকে। পৃথিবীর বিভিন্ন দেশের অগণিত মানুষ ভেষজ ওষুধের বদৌলতে সুস্থ ও স্বাভাবিক জীবনযাপন করছেন। পৃথিবীর সার্বিক জনগোষ্ঠীর পায় ৮০ শতাংশ ভেষজ ওষুধের ওপর নির্ভর করে তাদের রোগব্যাধির চিকিৎসা করে থাকেন। অর্থাৎ ভেষজ ওষুধ না থাকলে এই বিরাট জনগোষ্ঠী চিকিৎসাসেবা থেকে বঞ্চিত হতো।

ভেষজ ওষুধ উৎপাদনের জন্য প্রয়োজনীয় কাঁচামাল বিভিন্ন ঔষধি উদ্ভিদের উৎস থেকে সংগ্রহ বা আহরণ করা হয়। সাধারণত বনে-জঙ্গলে প্রাকৃতিকভাবে জন্মে থাকা ঔষধি উদ্ভিদ থেকেই ভেষজ ওষুধের কাঁচামাল সংগ্রহ করা হয়। কিন্তু বিজ্ঞানসম্মত পদ্ধতিতে জমিতে চাষকৃত উৎস থেকে ঔষধি উদ্ভিদ সংগ্রহ বাঞ্ছনীয়, না হলে এক সময় প্রকৃতি ভেষজ উদ্ভিদশূন্য হয়ে পড়বে। তা ছাড়া চাষকৃত ভেষজ উদ্ভিদের গুণগতমান অনেক উন্নত হয়ে থাকে। চাষের আওতায় ঔষধি উদ্ভিদের উৎপাদন ও আহরণ পদ্ধতি নিয়ন্ত্রণ করে সঠিক সময়ে সঠিক পদ্ধতিতে তা সংগ্রহ করার সুযোগ থাকে। বন্য উৎস  থেকে সংগৃহীত কাঁচামালের  ক্ষেত্রে এ ধরনের নিশ্চয়তা থাকে না। এ ক্ষেত্রে ভুল উদ্ভিদ ও দ্রব্য আহরণের যেমন আশঙ্কা থাকে তেমনি অসময়ে আহরিত নিম্নমানের কাঁচামাল সরবরাহেরও প্রচুর সুযোগ থাকে। অসময়ে, অপ্রাপ্ত বয়সে ও ভ্রান্ত পদ্ধতিতে সংগৃহীত ঔষধি উদ্ভিদ দ্বারা ভেষজ ওষুধ তৈরি হলে তা কখনো গুণগত মানসম্পন্ন হয় না। অধিকাংশ ভেষজ উদ্ভিদ চাষে কৃত্রিম কীটনাশক ও সার প্রয়োজন হয় না। অধিকাংশ ভেষজ উদ্ভিদ থেকে সারা বছর ধরে অথবা খুব অল্প সময়ে ফল বা প্রয়োজনীয় অংশ সংগ্রহ করা যায়। এ কারণে তুলনামূলকভাবে ভেষজ উদ্ভিদ চাষে বিনিয়োগ অনেক কম কিন্তু লাভ  বেশি। মাশরুমসহ আরো বেশ কিছু ভেষজ উদ্ভিদ রয়েছে- যা চাষে জায়গা খুবই কম লাগে, তাই ভূমিহীন বা প্রান্তিক জনগোষ্ঠীর জন্য ভেষজ উদ্ভিদ চাষ উপযোগী। আর্থিক দিক থেকে ভেষজ উদ্ভিদের চাষ অন্য যে কোনো কৃষির  চেয়ে অনেক বেশি লাভজনক। দেশে-বিদেশে ভেষজ উদ্ভিদের ব্যাপক চাহিদা থাকার কারণে ভেষজ উদ্ভিদ বিক্রি বা বাজারজাতকরণে কৃষককে তেমন বেগ  পেতে হয় না। এ কারণে ভেষজ উদ্ভিদ চাষে ঝুঁকি কম। ভেষজ উদ্ভিদ চাষ অপেক্ষাকৃত কম শ্রমসাধ্য। ভেষজ উদ্ভিদে খুব বেশি পরিচর্যা প্রয়োজন হয় না, তাই নারীর অংশগ্রহণে পারিবারিক পর্যায়ে ভেষজ উদ্ভিদের চাষ সম্ভব। দেশে ব্যাপকভাবে ভেষজ উদ্ভিদের চাষ সম্ভব হলে ভেষজ চিকিৎসা  ভেষজ ওষুধ আরো বেশি সহজলভ্য হবে, ফলে দরিদ্র মানুষের চিকিৎসা ব্যয় কমবে।

বাংলাদেশে সর্বমোট ভেষজ উদ্ভিদের সংখ্যা কত তা নিয়ে মতভেদ রয়েছে। আমাদের দেশে এ পর্যন্ত তালিকাভুক্ত ভেষজ উদ্ভিদের সংখ্যা ৫৪৬টি উল্লেখ করা হলেও প্রকৃতপক্ষে এ সংখ্যা বহুগুণ বেশি। কারণ আমাদের দেশে অধিকাংশ উদ্ভিদ ও লতা-গুল্মেরই ভেষজ গুণ রয়েছে। আমাদের দৈনন্দিন জীবনে ব্যবহার্য সবজি ও মসলাজাতীয় সবগুলো উদ্ভিদই উচ্চমাত্রার ভেষজ গুণসম্পন্ন। বাংলাদেশে বার্ষিক কী পরিমাণ ভেষজ উদ্ভিদ ব্যবহৃত হয় তার  কোনো সঠিক তথ্য পাওয়া যায় না। তবে আমাদের দেশে বর্তমানে প্রায় ৩ শতাধিক ইউনানী ও ২ শতাধিক আয়ুর্বেদিক ওষুধ প্রস্তুতকারী প্রতিষ্ঠান রয়েছে। এ ছাড়াও রয়েছে বহু ভেষজ প্রসাধনী প্রস্তুতকারী প্রতিষ্ঠান। এসব প্রতিষ্ঠানে বছরে ২০ হাজার টনেরও বেশি ভেষজ কাঁচামালের চাহিদা রয়েছে বলে জানা যায়। বাংলাদেশে প্রতি বছর সাড়ে ৩০০ থেকে পৌনে ৪০০ কোটি টাকার ভেষজ সামগ্রী আমদানি করা হয়। এগুলো সাধারণত ভেষজ ওষুধ ও প্রসাধন সামগ্রী তৈরির কাঁচামাল হিসেবে ব্যবহার করা হয়। ওষুধ ও ভেষজ প্রসাধনী তৈরির কারখানা অনেক বেড়েছে, আর সঙ্গতকারণে ভেষজের চাহিদাও বহুগুণ বৃদ্ধি পেয়েছে। এ ছাড়া শহরে এবং গ্রামে অলিতে-গলিতে বিক্রি হয় অনেক ভেষজ উদ্ভিদ। সমগ্র বাংলাদেশে বিভিন্ন কবিরাজ, টোটকা চিকিৎসক ও উপজাতি এবং আদিবাসী সম্প্রদায় প্রতিদিন ব্যবহার করে বিপুল পরিমাণ ভেষজ উদ্ভিদ, যার কোনো সঠিক পরিসংখ্যান পাওয়া যায় না।

বিশ্ব খাদ্য সংস্থার হিসাব মতে, বর্তমানে সারা বিশ্বে ভেষজ উদ্ভিদের ৬২ বিলিয়ন মার্কিন ডলারের বাজার রয়েছে। প্রতি বছর এই চাহিদা ১০.১৫ শতাংশ হারে বাড়ছে। বর্তমানে এই বিশাল বাজারের অধিকাংশই ভারত ও চীনের দখলে। ভেষজ উদ্ভিদের প্রধান আমদানিকারক দেশ হচ্ছে- যুক্তরাষ্ট্র, অস্ট্রেলিয়া, কানাডা, জাপান, মালয়েশিয়া ও ইউরোপের বিভিন্ন দেশ। এ ছাড়াও পাকিস্তান, সৌদি আরব, কুয়েত, কাতার, আবুধাবি, কোরিয়া, থাইল্যান্ডসহ অনেক দেশে ভেষজ উদ্ভিদের ব্যাপক ব্যবহার ও চাহিদা রয়েছে। অপরদিকে বিশ্ব স্বাস্থ্য সংস্থার হিসাব মতে, বর্তমান বিশ্বে প্রায় ৪০০  কোটি মানুষ কোনো না কোনোভাবে ভেষজ ওষুধ ব্যবহার করছে। ভেষজ ওষুধ ব্যবহারকারী সংখ্যা ক্রমশ বাড়ছে, আর সঙ্গে সঙ্গে প্রতিদিন বিশ্বব্যাপী বাড়ছে ভেষজ উদ্ভিদের চাহিদা। আমাদের দেশ থেকে বর্তমানে বহির্বিশ্বে যে পরিমাণ নিমচারা রপ্তানি হচ্ছে তা মোট চাহিদার ১ শতাংশেরও কম। ভেষজ উদ্ভিদ চাষ অন্য যে কোনো ফসল চাষের চেয়ে বহুগুণ বেশি লাভজনক এবং নিরাপদ। সমগ্র বিশ্বে ভেষজ উদ্ভিদের বিপুল চাহিদা রয়েছে। ভেষজ উদ্ভিদ রপ্তানি করে চীন প্রতি বছর আয় করে ৩০ বিলিয়ন মার্কিন ডলার, ভারত আয় করে ৬ বিলিয়ন ডলার এবং দক্ষিণ কোরিয়ার আয় ২.৩ বিলিয়ন মার্কিন ডলার। শতভাগ রপ্তানি সম্ভাবনা ছাড়াও ভেষজ উদ্ভিদের চাষ করে কৃষক তুলনামূলক অধিক লাভ করতে পারেন। অধিকাংশ ভেষজ উদ্ভিদের চাষ প্রক্রিয়া অত্যন্ত সহজ। সার ও কীটনাশকের ভূমিকা অত্যন্ত গৌণ, এ কারণে কৃষকের উৎপাদন খরচ তুলনামূলকভাবে অনেক কম। গুল্মজাতীয় ভেষজ প্রায় বিনা পরিচর্যা ও বিনা খরচে উৎপাদন সম্ভব, অথচ এসব উদ্ভিদের বাজার দর  বেশ চড়া।

লেখক ঃ রায়হান পারভেজ রনি

 

নতুন রূপে হাজির শুভশ্রী, নুসরাত, মিমি

বিনোদন বাজার ॥ কেউ লাল রঙের বেনারসীতে সেজে, আবার কেউ লাল পাড় গরদের শাড়িতে কেউ আবার সবুজ রঙের শাড়িতে। পূজার আগে যেন নতুন রূপে দর্শকদের সামনে হাজির হলেন টলিউডের ৩ নায়িকা। সোশ্যাল মিডিয়ার মাধ্যমে মিমি, নুসরাত এবং শুভশ্রীর সেই রূপ প্রকাশ্যে আসতেই হু হু করে তা ভাইরাল হয়ে যায়। সম্প্রতি একটি সংস্থার সঙ্গে বিজ্ঞাপনের শুটিং করেন পরিচালক রাজ চক্রবর্তী। সেই বিজ্ঞাপনেই একসঙ্গে হাজির হন মিমি, নুসরাত এবং শুভশ্রী। টলিউডের এই ৩ নায়িকার ভিডিও প্রকাশ্যে আসতেই তাদের ভক্তরা উচ্ছ্বিসিত হয়ে ওঠেন। সম্প্রতি মুক্তি পায় রাজ চক্রবর্তীর ছবি ‘পরিণীতা’। এই সিনেমায় কেন্দ্রীয় চরিত্রে অভিনয় করেন রাজ-ঘরণী শুভশ্রী গঙ্গোপাধ্যায়। ‘পরিণীতা’ দর্শকদের ভালবাসা কুড়িয়ে নিতে নিতেই এবার প্রকাশ্যে এলো শুভশ্রীর অন্য এক রূপ। রাজ-ঘরণীর সঙ্গে তাল মিলিয়ে এই ভিডিওতে দেখা যায় নুসরাত জাহান এবং মিম চক্রবর্তীকেও।

 

চট্টগ্রামের ‘রুপালি গিটার’  ভাস্কর্যের উদ্বোধন আজ

বিনোদন বাজার ॥ গত বছরের ১৮ অক্টোবর না ফেরার দেশে পাড়ি জমান বাংলা ব্যান্ডের জাদুকর, কিংবদন্তি গিটারিস্ট আইয়ুব বাচ্চু। চট্টগ্রামের কৃতী সন্তান আইয়ুব বাচ্চুকে স্মরণে রাখতে দারুণ এক আয়োজন হাতে নিয়েছে চট্টগ্রাম সিটি কর্পোরশন। শিল্পীর প্রতি শ্রদ্ধা জানাতে দুই মাস আগে সিদ্ধান্ত নেয়া হয় চট্টগ্রামের প্রবর্তক মোড়ে বসানো হবে রুপালি গিটার আদলের ভাস্কর্য। প্রবর্তক মোড়ের নাম হবে আইয়ুব বাচ্চু চত্বর। অবশেষে গত ৮ আগস্ট থেকে প্রবর্তক মোড়ে দেখা যাচ্ছে আইয়ুব বাচ্চুর সেই গিটার। এর সবরকম কাজ শেষ হয়েছে। আনুষ্ঠানিক উদ্বোধন হতে যাচ্ছে আড ১৮ সেপ্টেম্বর। জানা গেছে, বুধবার সন্ধ্যায় আইয়ুব বাচ্চুর মৃত্যুবার্ষিকীর এক মাস আগে ভাস্কর্যটির উদ্বোধন করবেন মেয়র আ জ ম নাছির উদ্দীন। স্টিলের পাতে তৈরি ১৮ ফুট উঁচু গিটারটিতে রয়েছে ৬টি তার। চট্টগ্রামের গোলপাহাড় মোড় থেকে প্রবর্তকের দিকে যাওয়ার সময় গিটারটির সামনের অংশ চোখে পড়বে। গত বছরের ১৮ আগস্ট চট্টগ্রাম সিটি কর্পোরেশনের গোলপাহাড় মোড় থেকে প্রবর্তক মোড় পর্যন্ত চার লেন বিশিষ্ট সড়কটির সৌন্দর্যবর্ধন, সবুজায়ন ও আধুনিকায়নের উদ্যোগ গ্রহণ করা হয়। অডিওস ইঙ্ক ও স্ক্রিপ্ট যৌথ উদ্যোগে এ সৌন্দর্যবর্ধনের কাজ করার জন্য চুক্তিবদ্ধ হয়। সেই চুক্তি মোতাবেক সৌন্দর্যবর্ধনের আওতায় প্রবর্তক মোড়ে বসানো হয়েছে আইয়ুব বাচ্চুর রুপালি গিটারের আদলে একটি গিটার। সিটি কর্পোরেশনও মনে করছে এটি ব্যান্ডসঙ্গীতপ্রেমীদের প্রিয় একটি স্থানে পরিণত হবে।

জিম্বাবুয়েকে হারিয়ে ফাইনাল নিশ্চিত করতে চায় বাংলাদেশ

ক্রীড়া প্রতিবেদক ॥ জিম্বাবুয়েকে হারিয়ে আজই ত্রিদেশীয় টি-২০ সিরিজের ফাইনাল নিশ্চিত করতে চায় স্বাগতিক বাংলাদেশ। সিরিজের চতুর্থ হলেও বাংলাদেশ-জিম্বাবুয়ের উভয় দু’দলের এটি তৃতীয় ম্যাচ। আজ জিম্বাবুয়েকে হারাতে পারলেই টুর্নামেন্টের ফাইনাল নিশ্চিত হবে বাংলাদেশের। অপরদিকে, টুর্নামেন্টে টিকে থাকতে হলে বাংলাদেশের বিপক্ষে জয় ছাড়া বিকল্প কোন পথ নেই জিম্বাবুয়ের। চট্টগ্রামের জহুর আহমেদ চৌধুরি স্টেডিয়ামে সন্ধ্যা সাড়ে ৬টায় শুরু হবে বাংলাদেশ-জিম্বাবুয়ে ম্যাচটি। টুর্নামেন্টের লিগ পর্বের প্রথম ধাপ শেষে পয়েন্ট টেবিলে সবার উপরে আফগানিস্তান। লিগের প্রথম পর্বের দু’ম্যাচেই জয় পেয়েছে তারা। দু’ম্যাচের মধ্যে একটিতে জিতেছে বাংলাদেশ। আর দু’টির মধ্যে কোনটিতেই জয় পায়নি জিম্বাবুয়ে। তাই আফগানিস্তানের পয়েন্ট ৪, বাংলাদেশের ২ ও জিম্বাবুয়ের শূন্য। তিন দলেরই ২টি করে ম্যাচ রয়েছে। জিম্বাবুয়ের বিপক্ষে আগামীকালের ম্যাচে জিতলে বাংলাদেশের পয়েন্ট হবে ৪। সেক্ষেত্রে জিম্বাবুয়ের ম্যাচ বাকী থাকবে মাত্র ১টি। নিজেদের শেষ ম্যাচে জিম্বাবুয়ে জিতলেও, তাদের পয়েন্ট হবে ২। বাংলাদেশ বা আফগানিস্তানের ৪ পয়েন্ট টপকে যাবার কোন সুযোগ নেই জিম্বাবুয়ের। কাল বাংলাদেশের কাছে হারলে টুর্নামেন্ট থেকে বিদায় নিবে জিম্বাবুয়ে। আর বাংলাদেশ চলে যাবে ফাইনালে। বাংলাদেশের সাথে ফাইনাল নিশ্চিত হয়ে যাবে আফগানিস্তানেরও। আর যদি বাংলাদেশ কাল হেরে যায়, তারপরও ফাইনালে যাবার সুযোগ থাকবে সাকিবের দলের। তখন ফাইনাল খেলার সুযোগ তৈরি হবে জিম্বাবুয়েও। সেক্ষেত্রে লিগ পর্বে নিজেদের চতুর্থ ও শেষ ম্যাচটি বাংলাদেশ-জিম্বাবুয়ে উভয়ের জন্যই হবে বাঁচা-মরার লড়াই। তাদের শেষ ম্যাচ হবে শক্তিশালী আফগানিস্তানের বিপক্ষে। যারা ফাইনালের পথে বেশ ভালোভাবেই টিকে আছে। টুর্নামেন্টর উদ্বোধনী ম্যাচে মুখোমুখি হয়েছিলো বাংলাদেশ-জিম্বাবুয়ে। বৃষ্টিবিঘিœত ম্যাচে টস জিতে প্রথমে ফিল্ডিং করার সিদ্বান্ত নেয় বাংলাদেশ। ব্যাট হাতে নেমে ৬৩ রানে ৫ উইকেট হারিয়ে বসে জিম্বাবুয়ে। তবে এরপরও বাংলাদেশের সামনে চ্যালেঞ্জিং টার্গেট ছুড়ে দেয় জিম্বাবুয়ে। কারন ছয় নম্বরে ব্যাট হাতে নেমে রায়ান বার্ল রানের ফুলঝুড়ি ফুটিয়েছেন। ৫টি চার ও ৪টি ছক্কায় ৩২ বলে অপরাজিত ৫৭ রান করেন। ফলে ১৮ ওভারে ৫ উইকেটে ১৪৪ রানের সংগ্রহ পায় জিম্বাবুয়ে। জয়ের জন্য ১৪৫ রানের লক্ষ্যে খেলতে নেমে বিপদেই পড়েছিলো বাংলাদেশ। টপ-অর্ডার ব্যাটসম্যানদের ব্যর্থতায় ৬০ রানে ৬ উইকেট হারিয়ে ম্যাচ থেকে অনেকটাই ছিটকে পড়েছিল টাইগাররা। কিন্তু বাংলাদেশকে হারের পথ থেকে বের করে আনেন মোসাদ্দেক হোসেন ও আফিফ হোসেন। সপ্তম উইকেটে ৪৭ বলে ৮২ রান যোগ করে বাংলাদেশকে দুর্দান্ত এক জয় এনে দেন মোসাদ্দেক ও আফিফ। ৮টি চার ও ১টি ছক্কায় ২৬ বলে ৫২ রান করে আউট হন আফিফ। তবে ২৪ বলে অপরাজিত ৩০ রান করে বাংলাদেশের জয় নিশ্চিত করে মাঠ ছাড়েন মোসাদ্দেক। তখন তার সঙ্গী ছিলেন মোহাম্মদ সাইফউদ্দিন। ২ বলে ৬ রানে অপরাজিত ছিলেন তিনি। জিম্বাবুয়ের বিপক্ষে কর্ষ্টাজিত জয় তুলে নিতে পারলেও, আফগানিস্তানের বিপক্ষে ম্যাচে অসহায় আত্মসমর্পন করে বাংলাদেশ। নিজেদের দ্বিতীয় ম্যাচে আফগানদের কাছে ২৫ রানে হারে সাকিবের দল। তাই হার নিয়ে চট্টগ্রামের মাটিতে এখন বাংলাদেশ দল। বাংলাদেশের মত নিজেদের দ্বিতীয় ম্যাচে আফগানিস্তানের কাছে হারে জিম্বাবুয়ে। তাদের হার ছিলো ২৮ রানে। তাই হার নিয়ে চট্টগ্রামে জিম্বাবুয়েও। দু’দলই জয়ের জন্য কাল মাঠে নামছে। এখন পর্যন্ত জিম্বাবুয়ের বিপক্ষে দশবার মুখোমুখি হয়েছে বাংলাদেশ। ৬টিতে জিতেছে বাংলাদেশ। ৪টিতে হার জিম্বাবুয়ের। বাংলাদেশ দল : সাকিব আল হাসান (অধিনায়ক), মুশফিকুর রহিম, মাহমুদ্ল্লুাহ রিয়াদ, সাব্বির রহমান, মোসাদ্দেক হোসেন, লিটন দাস, মুস্তাফিজুর রহমান, মোহাম্মদ সাইফউদ্দিন, আফিফ হোসেন, তাইজুল ইসলাম, রুবেল হোসেন, শফিউল ইসলাম, নাঈম শেখ, আমিনুল ইসলাম ও নাজমুল হোসেন শান্ত। জিম্বাবুয়ে দল : হ্যামিল্টন মাসাকাদজা (অধিনায়ক), রেগিস চাকাভা, রিচমন্ড মুতুম্বামি, সিন উইলিয়ামস, নেভিল মাদজিভা, টিনোটেন্ডা মুতোমবদজি, টনি মুনিওয়াঙ্গা, কাইল জার্ভিস, তেন্ডাই চাতারা, কিস্টোফার এমপোফু, ক্রেইগ আরভিন, বেন্ডন টেইলর, আইনস্তে এনডিলোভু, টিমিচেন মারুমা ও রায়ার্ন বার্ল।

ধর্ষণের অভিযোগে ‘বিব্রত’ ছিলেন রোনালদো

ক্রীড়া প্রতিবেদক ॥ নিজের বিরুদ্ধে ওঠা ধর্ষণের অভিযোগে বিব্রত বোধ করেছিলেন পর্তুগালের তারকা ফরোয়ার্ড ক্রিস্তিয়ানো রোনালদো। সন্তান ও পরিবারের সামনে নিজের সততা ও আত্মসম্মান নিয়ে প্রশ্ন ওঠাকে খুব কঠিন পরিস্থিতি বলে মনে করেন পাঁচবারের বর্ষসেরা এই ফুটবলার। গত বছরের অক্টোবরে ক্যাথরিন মায়োরগা নামে যুক্তরাষ্ট্রের এক নারী পুলিশের কাছে অভিযোগ করেন, ২০০৯ সালে রোনালদো তাকে লাস ভেগাসের একটি হোটেল কক্ষে ধর্ষণ করেছিলেন। চলতি বছরের জুলাইয়ে এক বিবৃতিতে লাস ভেগাসের কৌঁসুলিরা জানান, ওই অভিযোগ প্রমাণ করা যাচ্ছে না। এজন্য ৩৪ বছর বয়সী রোনালদোর বিরুদ্ধে ধর্ষণের অভিযোগ গঠন করা হচ্ছে না বলেও জানান তারা। ‘গুড মর্নিং ব্রিটেন’ নামের এক টিভি অনুষ্ঠানের জন্য পিয়ার্স মর্গ্যানকে দেওয়া এক সাক্ষাৎকারে সে সময়ে নিজের মানসিক অবস্থা নিয়ে কথা বলেন রোনালদো। “তারা আপনার আত্মসম্মান নিয়ে প্রশ্ন তোলে। এটা খুব কঠিন। আপনার একজন গার্লফ্রেন্ড আছে, পরিবার আছে, সন্তান আছে। যখন তারা আপনার সততা নিয়ে প্রশ্ন তোলে, এটা অনৈতিক, এটা কঠিন।” “আমার মনে পড়ে, একদিন আমি বাড়িতে লিভিং রুমে আমার গার্লফ্রেন্ডের সঙ্গে টেলিভিশনে খবর দেখছিলাম। আর তারা বলছিল ‘ক্রিস্তিয়ানো রোনালদো এটা করেছে, ওটা করেছে।’” “আমি শুনতে পেলাম যে আমার সন্তানরা সিঁড়ি দিয়ে নেমে আসছে এবং আমি চ্যানেলটা বদলে দিলাম কারণ আমি বিব্রত বোধ করছিলাম। আমি ক্রিস্তিয়ানো জুনিয়রের জন্য চ্যানেল বদলে দিয়েছিলাম। যেন সে দেখতে না পারে যে তারা খুব খারাপ একটা বিষয়ে তার বাবাকে নিয়ে খারাপ কিছু বলছে।” আদালতের নথি অনুসারে, ২০১০ সালে আদালতের বাইরে রোনালদোর সঙ্গে আলোচনার মাধ্যমে  সমঝোতায় পৌঁছেছিলেন মায়োরগা। তিন লাখ ৭৫ হাজার ডলারের বিনিময়ে কখনও এই অভিযোগ প্রকাশ না করার ব্যাপারে রাজি হন তিনি। রোনালদোর আইনজীবীরা ২০০৯ সালে লাস ভেগাসে দুজনের সাক্ষাতের বিষয়টি অস্বীকার করেননি। তবে দাবি করেন, দুজনের মধ্যে যা-ই হয়েছিল, পারস্পরিক সমঝোতায় হয়েছিল। সাক্ষাৎকারের এক পর্যায়ে রোনালদোকে তার বাবার সঙ্গে একটি ভিডিও দেখানো হয় যেটা দেখে কেঁদে ফেলেন ইউভেন্তুস তারকা। ২০০৫ সালে মাত্র ৫২ বছর বয়সে মারা গিয়েছিলেন রোনালদোর বাবা জোসে দিনিস আভেইরো। “তিনি আমার পুরস্কার নেওয়াটা দেখতে পারছেন না। আমার পরিবার দেখছে, আমার মা, আমার ভাইয়েরা ৃ এমনকি আমার ছেলেও দেখছে। কিন্তু আমার বাবা কিছুই দেখতে পারলেন না।” “সত্যি কথা বলতে আমি আমার বাবাকে শতভাগ জানি না। তিনি ছিলেন একজন মদ্যপ ব্যক্তি। আমি কখনও তার সঙ্গে স্বাভাবিকভাবে কথা বলতাম না।”

কঙ্গনার হাত থেকে সম্মাননা নিলেন জাহিদ খান

বিনোদন বাজার ॥ এবার থাইল্যান্ডের ব্যাংককে ‘মিলেনিয়াম ব্রিলিয়েন্স অ্যাওয়ার্ড-২০১৯’ পেলেন বাংলাদেশের স্বনামধন্য মেকআপ আর্টিস্ট জাহিদ খান। গত ১৬ সেপ্টেম্বর রাতে ব্যাংককের স্থানীয় একটি হলরুমে এক আড়ম্বরপূর্ণ অনুষ্ঠানে তাকে এই অ্যাওয়ার্ড প্রদান করেন বলিউড অভিনেত্রী কঙ্গনা রানাওয়াত। ‘জাহিদ খান মেকওভার’ ও ‘জাহিদ খান ব্রাইডাল কালেকশন’- এই দুটি ক্যাটাগরিতে জাহিদ খানকে সম্মাননা প্রদান করা হয়।

এ প্রসঙ্গে ব্যাংকক থেকে জাহিদ খান জানান, বাংলাদেশ ছাড়াও এর আগে গত বছর কলকাতা থেকে সম্মাননা পেয়েছিলাম। তবে এবারের সম্মাননাটি আমার কাছে অনেক বেশি গুরুত্ববহ। কারণ বিশ্বের বিভিন্ন স্থান থেকে নিজ নিজ ক্ষেত্রে গুণী মানুষদেরকে এখানে সম্মানিত করা হয়েছে। উপরন্তু কঙ্গনা রানাওয়াতের হাত থেকে সম্মাননাটি গ্রহণ করার মুহূর্তটি আমার কাছে স্মরণীয় হয়ে থাকবে।

প্রসঙ্গত, স্ব স্ব কাজে স্বনামধন্য ব্যক্তিত্বদেরকে প্রতি বছর ‘মিলেনিয়াম ব্রিলিয়েন্স অ্যাওয়ার্ড’ প্রদান করা হয়ে থাকে। গত বছর মালয়েশিয়ায় কারিনা কাপুর খান অ্যাওয়ার্ড বিজয়ীদের হাতে সম্মাননা তুলে দেন।

এদিকে ‘মিলেনিয়াম ব্রিলিয়েন্স অ্যাওয়ার্ড-২০১৯’ সম্মাননা গ্রহণ করার উদ্দেশ্যে গত শনিবার ঢাকা ছাড়েন জাহিদ খান। ১৮ সেপ্টেম্বর রাতে তার দেশে ফেরার কথা রয়েছে।

 

কণ্ঠশিল্পী মিলার মামলার প্রতিবেদন ১১ নভেম্বর

বিনোদন বাজার ॥ সাবেক স্বামী পাইলট পারভেজ সানজারিসহ তিনজনের বিরুদ্ধে কণ্ঠশিল্পী মিলার ডিজিটাল নিরাপত্তা আইনে করা মামলার প্রতিবেদন দাখিলের জন্য ১১ নভেম্বর দিন ধার্য করেছেন আদালত।সোমবার মামলার প্রতিবেদন দাখিলের দিন ধার্য ছিল। কিন্তু এদিন মামলার তদন্ত সংস্থা পুলিশের কাউন্টার টেরোরিজম অ্যান্ড ট্রান্সন্যাশনাল ক্রাইম আদালতে তা দাখিল করেনি।এ জন্য সাইবার ট্রাইব্যুনালের (বাংলাদেশ) বিচারক মোহাম্মদ আসসামছ জগলুল হোসেন প্রতিবেদন দাখিলের জন্য পরবর্তী ওই দিন ধার্য করেন।এর আগে ১১ জুলাই ট্রাইব্যুনালে এ মামলাটি করেন কণ্ঠশিল্পী তাশবিহা বিনতে শহীদ ওরফে মিলা। মামলায় পারভেজ সানজারি ছাড়াও তার ভাই এসএমআর রহমান এবং খান আল আমিনকে আসামি করা হয়।অভিযোগে বলা হয়, আসামিরা ১৫ জুন সিরাজি ভাই নামের এক ইউটিউব চ্যানেলে একটি ভিডিও প্রকাশ করে। যাতে মিলাকে সন্ত্রাসী পপ-তারকা মিলা হিসেবে উল্লেখ করা হয়েছে।আসামিরা তা শেয়ার করে দেশের জনগণ ও আইন-আদালত তথা রাষ্ট্রে বিরূপ প্রতিক্রিয়া সৃষ্টি করেছেন। এ ছাড়া আসামিরা বিভিন্ন অনলাইন পোর্টালে মিথ্যা তথ্য পরিবেশনের মাধ্যমে বাদীর চরিত্র হননের উদ্দেশ্যে ফেসবুক ফ্রেন্ড ও ফলোয়ারদের লিংক সেন্ট করেন।আসামি পারভেজ সানজারির ভাই এসএমআর রহমান তার ফেসবুক অ্যাকাউন্ট থেকে মিলার বিরুদ্ধে ছবিসহ পোস্ট করেন।তাতে বলা হয়, এই দুই এসিড সন্ত্রাসী কোথাও দেখতে পেলে খবর দিন। সবার একান্ত সহযোগিতা কামনা করছি। এসিড নিক্ষেপ মামলার আসামিরা এখনও কেউ গ্রেফতার হয়নি।আমরা নিরাপত্তাহীনতায় ভুগছি। অবিলম্বে আসামিদের গ্রেফতার করা হোক। আসামিদের দ্রুত গ্রেফতার করে আইনের আওতায় না আনা হলে ন্যায়বিচার বিঘ্নিত হবে। বিয়ে করা ও ডিভোর্স দেয়া মিলার ব্যবসা- এই রকম আরও অনেক মিথ্যা, অসত্য, ও মানহানিকর পোস্ট ফেসবুকে দেয়া হয়।

মধুমিতায় সালমান শাহ জন্মোৎসব

বিনোদন বাজার ॥ প্রয়াত চিত্রনায়ক সালমান শাহের জন্মদিন ১৯ সেপ্টেম্বর। দিনটি উৎযাপন উপলক্ষে ‘সালমান শাহ জন্মোৎসব’-এর আয়োজন করছে ঢুলি নামে একটি পিআর প্রতিষ্ঠান। ২০ সেপ্টেম্বর থেকে শুরু হওয়া সাত দিনব্যাপী এ আয়োজন অনুষ্ঠিত হবে রাজধানীর মধুমিতা প্রেক্ষাগৃহে। আয়োজকরা জানিয়েছেন উদ্বোধনী দিন কেক কেটে সালমান শাহের জন্মদিন পালন করা হবে। এরপর প্রতিদিন একটি করে ছবি পরবর্তী দিনগুলোয় প্রদর্শিত হবে। প্রসঙ্গত, ১৯৯৬ সালের ৬ সেপ্টেম্বর পৃথিবী ছেড়ে চলে যান এ নায়ক। তার মৃত্যু হত্যা নাকি আত্মহত্যা সেটা এখনও রহস্য হয়েই আছে।m যে কারণে সাইবার ক্রাইম ট্রাইব্যুনালে মামলা করলেন মেহজাবীনবিনোদন বাজার ॥ ছোটপর্দার জনপ্রিয় অভিনেত্রী মেহজাবীন চৌধুরী মঙ্গলবার নিজের ফেসবুক অ্যাকাউন্টে লিখেছেন, সম্প্রতি তার নাম ব্যবহার করে একটি আপত্তিকর ভিডিও ক্লিপ সামাজিক যোগাযোগমাধ্যমে ছড়ানো হয়েছে।কিন্তু ভিডিওটি ভুয়া। আর সে জন্য দর্শক-ভক্তদের উদ্দেশ্য করে তিনি ওই স্ট্যাটাস দেন।তিনি এতে আরও লেখেন, সামাজিক যোগাযোগমাধ্যম ফেসবুকে একটি ভিডিও ছড়িয়েছে এবং এ নিয়ে কিছু অসাধু লোকজন বিভ্রান্তি সৃষ্টি করছেন।আমার সব ফ্যান-ফলোয়ার ও সমর্থকদের কাছে আমার অনুরোধ- মিথ্যা খবর কিংবা ভিডিওতে বিশ্বাস করবেন না।’এরই মধ্যে বিষয়টি নিয়ে মেহজাবীন আইনের শরণাপন্ন হয়েছেন বলেও জানিয়েছেন।

ফেসবুকে তিনি লেখেন, যারা এসব বিভ্রান্তিকর তথ্য ছড়াচ্ছেন বা ছড়াতে সাহায্য করছেন- আমি ইতোমধ্যে ঢাকা মেট্রোপলিটন পুলিশের সাইবার ক্রাইম ডিপার্টমেন্টে তাদের বিরুদ্ধে আইনত ব্যবস্থা নেয়ার অনুরোধ করেছি।’১০ বছর ধরে অসংখ্য নাটক, টেলিফিল্ম ও বিজ্ঞাপনে কাজ করেছেন মেহজাবীন চৌধুরী। উপহার দিয়েছেন দর্শকপ্রিয় বহু নাটক।

২০০৯ সালে লাক্স সুপারস্টার প্রতিযোগিতার মধ্য দিয়ে মিডিয়াতে পা ফেলেন এ গুণী শিল্পী।

 

নিষেধাজ্ঞা কমল নেইমারের

ক্রীড়া প্রতিবেদক ॥ রেফারির সিদ্ধান্ত নিয়ে বাজে মন্তব্য করায় ইউরোপিয়ান প্রতিযোগিতায় পিএসজি ফরোয়ার্ড নেইমারের তিন ম্যাচের নিষেধাজ্ঞা কমিয়ে দুই ম্যাচ করেছে কোর্ট অব আরবিট্রেশন ফর স্পোর্টস (সিএএস)।  গত ৬ মার্চ ম্যানচেস্টার ইউনাইটেডের বিপক্ষে চ্যাম্পিয়ন্স লিগে শেষ ষোলোর ফিরতি পর্বে দ্বিতীয়ার্ধের যোগ করা সময়ে ভিএআরের সাহায্য নিয়ে পিএসজির বিপক্ষে পেনাল্টি দিয়েছিলেন রেফারি। পায়ের পাতার চোটে শেষ ষোলোর কোনো লেগেই খেলতে পারেননি নেইমার। দুই লেগ মিলিয়ে স্কোরলাইন ৩-৩ হলে প্রতিপক্ষের মাঠে গোল কম করায় ছিটকে যায় টমাস টুখেলের দল। লড়াইয়ের শেষ সময়ে দেওয়া রেফারির সিদ্ধান্তটি ‘লজ্জাজনক’ বলে সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে লিখেছিলেন ২৭ বছর বয়সী নেইমার। ওই মন্তব্যের জন্য তাকে ইউরোপিয়ান প্রতিযোগিতায় তিন ম্যাচের জন্যে নিষিদ্ধ করেছিল উয়েফা। নিষেধাজ্ঞার বিরুদ্ধে পিএসজির করা আপিল উয়েফা খারিজ করে দিলে কোর্ট অব আরবিট্রেশন ফর স্পোর্টসের (সিএএস) কাছে আবেদন জানায় প্যারিসের ক্লাবটি। তারই প্রেক্ষিতে মঙ্গলবার নেইমারের শাস্তি কমালো ক্রীড়ার সর্বোচ্চ আদালত। কয়েক সপ্তাহের মধ্যে নিষেধাজ্ঞা কমানোর সিদ্ধান্তের কারণ জানানো হবে বলে বিবৃতিতে জানিয়েছে সিএএস। চলতি মৌসুমে চ্যাম্পিয়ন্স লিগে গ্র“প পর্বের প্রথম ম্যাচে বুধবার বাংলাদেশ সময় রাত একটায় রেকর্ড ১৩ বারের চ্যাম্পিয়ন রিয়াল মাদ্রিদের মুখোমুখি হবে পিএসজি। এই ম্যাচ ও গালাতাসারাইয়ের বিপক্ষে খেলতে পারবেন না নেইমার। তবে ২২ অক্টোবর বেলজিয়ামের ক্লাব ব্র“জের বিপক্ষে খেলতে আর কোনো বাধা রইলো না ব্রাজিলিয়ান তারকার।