ব্যবসায়ী মহলে ক্ষোভ

খাজানগরে নজরুল এ্যাগ্রোফুডের মালিক নজরুলকে নিয়ে মিথ্যাচার

শুন্য থেকে কোটিপতি নয়, জীবন সংগ্রাম আর মেহনত করে আজ স্বাবলম্বি হয়েছি মাত্র। দেশের অন্যতম বৃহত্তম চাতালকলে পরিচালনা করছি ব্যবসা। প্রতিষ্ঠা করেছি নজরুল এ্যাগ্রোফুড নামে রাইস প্রসেসিং মিল। নিজস্ব তেমন অর্থকড়ির না থাকায় সম্পূর্ণ ব্যাংক ঋণের ওপর নির্ভর করে প্রতিষ্ঠা করি ওই মিল। মিল স্থাপনের পর থেকেই বেশ সুনামের সাথেই ব্যবসা করে আসছি। স্থানীয় মিলারদের সাথে গড়ে ওঠে সখ্যতা। আল্লাহর অশেষ কৃপায় আজ সততার সাথে মাথা উঁচু করে দাঁড়িয়ে আছ্।ি দীর্ঘ পথপরিক্রমায় কখনো কলঙ্ক স্পর্শ করেনি। অথচ আজ আমাকে নিয়ে মিথ্যে অপবাদ ছড়ানো হচ্ছে। বানানো হচ্ছে মাদক ব্যবসায়ী। শুন্য থেকে নাকি কোটিপতি বনে গেছি অবৈধ পথে অর্থ উপার্জন করে। এনিয়ে সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে চলছে উদ্দেশ্য প্রণোদিতভাবে লেখালেখি। এতে করে সামাজিকভাবে হেয়প্রতিপন্নের পাশাপাশি পারিবারিকভাবেও বিব্রতকর পরিস্থিতিতে পড়তে হয়েছে। নজরুল এ্যাগ্রোফুড এর স্বত্ত্বাধিকারী নজরুল ইসলাম জানান কেন এমন পরিস্থিতি তৈরী হলো তা আমার জানা নেয়। তবে কোন কুচক্রিমহল এই হীন ষড়যন্ত্রে লিপ্ত তা পরিস্কার। কথায় বলে কারো সুখ নাকি কারো সয়না। আমার বেলায়ও হয়েছে তাই। দীর্ঘ পথপরিক্রমায় যখন পরিবার পরিজন নিয়ে আর ১০জন ব্যবসায়ীদের মত সুখে শান্তিতে ব্যবসা পরিচালনা করছি তখন একটি মহল পরিকল্পিতভাবে আমাকে এবং আমার পরিবারের সম্মান ক্ষুন্ন করতে মরিয়া হয়ে ওঠে। ইতোপূর্বেও সেই চক্রান্ত করে ওই মহলটি। সর্বশেষ শুক্রবার আমাকে নিয়ে কুরুচিপূর্ণ মন্তব্য করা হয়। আমাকে বানানো হয় মাদক ব্যবসায়ী। আমি নাকি অবৈধ উপায়ে সম্পদ অর্জন করেছি। কিন্তু আল্লাহকে স্বাক্ষি করে বলতে চাই জীবনে কোন অবৈধ অর্থ উপাজন করিনি। বাবা আবুল হোসেন ও তাঁর চারপূত্র সন্তানও কোনপ্রকার অবৈধ সম্পদের মালিক হয়নি।

এদিকে নজরুলকে নিয়ে এমন মিথ্যাচারে বিক্ষুব্ধ খাজানগর তথা দেশের অন্যতম বৃহত্তম চালকলের ব্যবসায়ী সমাজ। একজন সৎ নিষ্ঠাবান প্রতিষ্ঠিত ব্যবসায়ীকে নিয়ে এধরণের ষড়যন্ত্র কুরুচীপূর্ন মানুষের কাজ বলে মনে করেন তারা। একজন প্রতিষ্ঠিত ব্যবসায়ীকে নিয়ে এধরনের ষড়যন্ত্র মোটেও কাম্য নয়।

 

আলমডাঙ্গায় বঙ্গবন্ধু জাতীয় গোল্ডকাপ ফুটবলের উদ্বোধন করলেন জেলা প্রশাসক নজরুল ইসলাম সরকার

আলমডাঙ্গা অফিস ॥ আলমডাঙ্গা জাতীর পিতা বঙ্গবন্ধু শেখ মুুজিবর রহমান গোল্ডকাপ ফুটবল টুর্নামেন্ট (অনুর্ধ-১৭)এর শুভ উদ্বোধন করলেন চুয়াডাঙ্গা জেলা প্রশাসক মোঃ নজরুল ইসলাম সরকার। গতকাল রবিবার বেলা সাড়ে ৩টার দিকে আলমডাঙ্গা পাইলট সরকারি উচ্চবিদ্যালয়ের (এটিম) ফুটবল মাঠে জমকালো অনুষ্টানের মাধ্যমে টুর্নামেন্টের উদ্বোধন কালে জেলা প্রশাসক বেলুন ও ফেস্টুন উড়িয়ে শুভ উদ্বোধন কালে বলেন, হাজার বছরের শ্রেষ্ট বাঙ্গালী জাতীর পিতা শেখ মুজিবের জন্ম না হলে বাংলাদেশের জন্ম হত না, আমরা একটি স্বাধীন ভূখন্ড,একটি পতাকা পেতাম না। তাই বঙ্গবন্ধু সম্পর্কে নতুন প্রজন্মকে জানতে হবে। তা না হলে স্বাধীনতা অর্থহীন হয়ে পড়বে।বঙ্গবন্ধু নিজেও ফুটবল খেলতেন।খেলাধুল শরীর ওমন সুস্থ রাখে,সকল নেশা থেকে দুরে রাখে। আলমডাঙ্গা উপজেলা নির্বাহী অফিসার মোঃ লিটন আলীর সভাপতিত্বে বিশেষ অতিথি হিসেবে উপস্থিত ছিলেন উপজেলা ভারপ্রাপ্ত চেয়ারম্যান এ্যাডঃ সালমুন আহম্মেদ ডন,মহিলা ভাইস চেয়ারম্যান কাজী মারজাহান নিতু,চুয়াডাঙ্গা জেলা ইউপি চেয়ারম্যান সমিতির সভাপতি হারদী ইউপি চেয়ারম্যান নুরুল ইসলাম,উপজেলা সহকারি কমিশনার ভূমি সীমা সারমিন,জেলা নির্বাহী ম্যাজিষ্ট্রেট খাইরুল ইসলাম,উপজেলা আওয়ামীলীগের ভারপ্রাপ্ত সম্পাদক ইয়াকুব আলী মাষ্টার,সিনিয়র সহসভাপতি মজিবর রহমান,থানার উপ-পরিদর্শক সাইফুল ইসলাম,উপজেলা চেয়ারম্যান সমিতির সম্পাদক কালিদাশ পুর ইউপি চেয়ারম্যান নুরুল ইসলাম নুরু,কুমারি ইউপি চেয়ারম্যান আবু সাইদ পিন্টু, পৌর সভার প্যানেল মেয়র সদরদ্দিন ভোলা। সাবেক ফুটবলার প্রেসক্লাবের সম্পাদক হামিদুল ইসলাম আজম ও হাফিজুর রহমান জীবনের উপস্থাপনায় অন্যদের মধ্যে উপস্থিত ছিলেন,পৌর কাউন্সিলর মতিয়ার রহমান ফারুক,জহুরুল ইসলাম স্বপন,কাজী আলী আসগর সাচ্চু,আব্দুল গাফ্ফার,জামজামি প্যানেল চেয়ারম্যান নাসির উদ্দিন,বীর মুক্তিযোদ্ধা আলহাজ্ব শেখ নুর মোহাম্মদ জকু,সমাজ সেবা কর্মকর্তা আফাজ উদ্দিন,উপজেলা শিক্ষা অফিসার শামসুজ্জোহা,প্রেসক্লাবের সভাপতি খন্দকার শাহ আলম মন্টু,প্রকল্প কর্মকর্তা এনামুল হক,উপজেলা ক্রীড়া সংস্থার সম্পাদক খন্দকার জিহাদী জুলফিকার টুটুল,সাবেক ফুটবলার ঢাকা ১ম বিভাগের খেলোয়াড় শরিফুল ইসলাম,প্রমুখ।আলমডাঙ্গা হারদী ইউনিয়ন ফুটবল টিম বনাম জামজামি ফুটবল টিমের মধ্য প্রথম দিনের খেলায় হারদী ইউনিয়ন জামজামি ইউনিয়নকে ৩-১ গোলে পরাজিত করে জয়লাভ করে।

ঝিনাইদহে আন্তর্জাতিক স্বাক্ষরতা দিবস পালিত

ঝিনাইদহ প্রতিনিধি ॥ ‘বহু ভাষায় স্বাক্ষরতা, উন্নত জীবনের নিশ্চয়তা’ এ শ্লোগানকে সামনে রেখে ঝিনাইদহে আন্তর্জাতিক স্বাক্ষরতা দিবস পালিত হয়েছে। গত রোববার সকালে জেলা প্রশাসনের আয়োজনে শহরের পুরাতন ডিসি কোর্ট চত্বর থেকে একটি র‌্যালি বের করা হয়। র‌্যালিটি শহরের প্রধান প্রধান সড়ক ঘুরে কেসি কলেজ চত্বরে গিয়ে শেষ হয়। পরে কেসি কলেজ মিলনায়তনে আলোচনা সভা অনুুষ্ঠিত হয়। আলোচনা সভায় সরকারি কেসি কলেজের অধ্যক্ষ প্রফেসর ড. বি এম রেজাউল করিম এর সভাপতিত্বে প্রধান অতিথি হিসাবে উপস্থিত ছিলেন জেলা প্রশাসক সরোজ কুমার নাথ। বিশেষ অতিথি হিসেবে উপস্থিত ছিলেন সরকারি নুরুন্নাহার মহিলা কলেজের অধ্যক্ষ মনিরুল ইসলাম, অতিরিক্ত জেলা ম্যাজিস্ট্রেট রবিউল ইসলাম, জেলা উপআনুষ্ঠানিক শিক্ষা বুরে‌্যার সহকারী পরিচালক শেখ নুরুজ্জামান, সদর থানার ওসি (অপারেশন) মহসীন হোসেনসহ অন্যান্যরা।

 

ঝিনাইদহ ১২টা স্বর্ণবারসহ একজনকে আটক করেছে র‌্যাব

ঝিনাইদহ প্রতিনিধি ॥ ঝিনাইদহে ১২টি স্বর্ণ বারসহ দর্শনাগামী পূর্বাশা পরিবহনের বাস থেকে শরীফ উদ্দিন নামে এক ব্যক্তিকে আটক করেছে ঝিনাইদহ র‌্যাব-৬। শনিবার গভীর রাত ঝিনাইদহ বিসিক শিল্প নগরীর সামনে বাস তল্লাশি করে তাকে আটক করা হয়। আটক শরীফ উদ্দীন চুয়াডাঙ্গা জেলার দর্শনা থানা পাড়ার শফি উদ্দিনের ছেলে। র‌্যাব-৬ এর ঝিনাইদহ ক্যাম্পের কোম্পানি কমান্ডার অতিরিক্তি পুলিশ সুপার মাসুদ আলম জানান, ঢাকা থেকে বাসযোগে একটি স্বর্ণের চালান দর্শনায় যাচ্ছে-এমন সংবাদের ভিত্তিতে রাতে শহরে বিসিক শিল্প নগরীর সামনে চেকপোস্ট বসানো হয়। রাত ২টার দিকে ঢাকা থেকে দর্শনাগামী পূর্বাশা পরিবহনের একটি বাস থামিয়ে তল্লাশী চালিয়ে শরিফ উদ্দিনকে আটক করা হয়। পরে তার দেহ তল্লাশি করে জুতার ভেতরে লুকানো অবস্থায় ১২ পিস স্বর্ণ বার উদ্ধার করা হয়। যার ওজন ১ কেজি ৪শ গ্রাম।

দৌলতপুরে মরিচা মাধ্যমিক বিদ্যালয়ে সততা ষ্টোরের উদ্বোধন

দৌলতপুর প্রতিনিধি ॥ কুষ্টিয়ার দৌলতপুরের মরিচা মাধ্যমিক বিদ্যালয়ে সততা ষ্টোরের উদ্বোধন করা হয়েছে। গতকাল রবিবার সকাল সাড়ে ১০টায় মরিচা মাধ্যমিক বিদ্যালয় কক্ষে এ ষ্টোরের উদ্বোধন করা হয়। এতে প্রধান অতিথি ছিলেন, দুর্নীতি দমন কমিশন সমন্বিত কুষ্টিয়া জেলা কার্যালয়ের উপ-পরিচালক মো. জাকারিয়া। মরিচা মাধ্যমিক বিদ্যালয়ের প্রধান শিক্ষক মো. শরিফুল ইসলামের সভাপতিত্বে সততা ষ্টোর উদ্বোধন অনুষ্ঠানে বিশেষ অতিথি ছিলেন, দৌলতপুর দুর্নীতি প্রতিরোধ কমিটির সভাপতি আলহাজ¦ নজরুল ইসলাম, সাধারণ সম্পাদক উপাধ্যক্ষ আবু সাঈদ মো. আজমল হোসেন, দৌলতপুর মাধ্যমিক শিক্ষা অফিসার সর্দার মো. আবু সালেক। এসময় দুর্নীতি প্রতিরোধে সকলকে সচেতন হওয়ার আহ্বান জানানো হয়।

রাজা স্মৃতি স্পোর্টিং ক্লাবের উদ্যোগে নৌকা ভ্রমন

কুষ্টিয়া শহরের আমলাপাড়াস্থ রাজা স্মৃতি স্পোর্টিং ক্লাবের উদ্যোগে নৌকা ভ্রমন’র আয়োজন করা হয়েছে। ক্লাবের সদস্যদের নিয়ে আগামী ১৩ সেপ্টেম্বর শুক্রবার সকালে এ নৌকা ভ্রমন’র আয়োজন করা হয়েছে। নৌকা ভ্রমন’র সার্বিক ব্যবস্থাপনা ও পরিচালনায় রয়েছেন রাজা স্মৃতি স্পোর্টিং ক্লাবের সাধারণ সম্পাদক ও কুষ্টিয়া বড় বাজার ব্যবসায়ি সমিতির সাংগঠনিক সম্পাদক নুরুজ্জামান বিশ^াস জনি। সংবাদ বিজ্ঞপ্তি

মিরপুরে রচনা প্রতিযোগিতার পুরষ্কার বিতরণ

আমলা অফিস ॥ কুষ্টিয়ার মিরপুরে আন্তর্জাতিক যুব দিবস উপলক্ষে রচনা প্রতিযোগিতার বিজয়ীদের মধ্যে পুরষ্কার বিতরণ করা হয়েছে। আলো স্বেচ্ছাসেবী পল্লী উন্নয়ন সংস্থার উদ্যোগে ও একশন এইড বাংলাদেশের সহযোগিতায় গতকাল রোববার সকালে মিরপুর মাহমুদা চৌধুরী কলেজের হলরুমে এ পুরষ্কার বিতরণ করা হয়। কলেজের ভারপ্রাপ্ত অধ্যক্ষ আমিরুল ইসলামের সভাপতিত্বে অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথি ছিলেন উপজেলা মাধ্যমিক শিক্ষা কর্মকর্তা জুলফিকার হায়দার। এতে বিশেষ অতিথি ছিলেন জেলা পরিষদের সদস্য আলহাজ্ব মহাম্মদ আলী জোয়ার্দ্দার, উপজেলা সমাজসেবা কর্মকর্তা জামশেদ আলী, প্রেসক্লাবের সাধারণ  সম্পাদক রাশেদুজ্জামান রিমন, সাবেক আহ্বায়ক হুমায়ূন কবির হিমু, আলো সংস্থার সভাপতি অধ্যাপক আনোয়ার হোসেন, মিরপুর মাহমুদা চৌধুরী কলেজের ক্রীড়া শিক্ষক শরিফুল ইসলাম। আলো সংস্থার প্রকল্প সমন্বয়কারী জারজিস আল মাহমুদ’র পরিচালনায় শুভেচ্ছা বক্তব্য রাখেন সংস্থার নির্বাহী পরিচালক ফিরোজ আহাম্মেদ। এ সময়ে সংস্থার প্রকল্প কর্মকর্তা ফারুক হোসেন, ফাইন্যান্স অফিসার মাহফুজুর রহমান প্রমুখ উপস্থিত ছিলেন। পরে অতিথিবৃন্দ উপজেলার ১৩টি স্কুল ও ৫টি কলেজের শিক্ষার্থীদের অংশ গ্রহণে রচনা প্রতিযোগিতার বিজয়ীদের মধ্যে পুরষ্কার বিতরণ করেন। প্রতিযোগিতায় স্কুল পর্যায়ে  মিরপুর সরকারী বালিকা উচ্চ বিদ্যালয়ের দশম শ্রেনীর শিক্ষার্থী লাজিনা আফরোজ, কলেজ পর্যায়ে মিরপুর মাহমুদা চৌধুরী কলেজের একাদশ শ্রেনীর শিক্ষার্থী আব্দুল্লাহ-আল-ক্বাফী ও স্বেচ্ছাসেবক পর্যায়ে স্বাধীনা খাতুন প্রথম স্থান অধিকার করেন।

কালুখালীতে আন্তর্জাতিক সাক্ষরতা দিবস উপলক্ষ্যে র‌্যালী ও আলোচনা সভা

ফজলুল হক ॥ গতকাল রাজবাড়ী জেলাধীন কালুখালীতে আন্তর্জাতিক সাক্ষরতা দিবস ২০১৯ উদযাপনে র‌্যালী ও আলোচনা সভা অনুষ্ঠিত হয়েছে। এ উপলক্ষ্যে গতকাল সকাল ১০ টায় উপজেলা পরিষদ কালুখালী এর আয়োজনে বিশাল একটি বর্ণাঢ্য র‌্যালী বের করা হয়। র‌্যালীটি উপজেলা পরিষদ থেকে শুরু করে আশপাশ রাস্তা পদক্ষিণ করে। র‌্যালী পরবর্তী উপজেলা পরিষদের সম্মেলন কক্ষে এক আলোচনা সভায় উপজেলা সহকারী কমিশনার (ভূমি) শেখ নুরুল আমিন এর সভাপতিত্বে শুভেচ্ছা বক্তব্য রাখেন উপানুষ্ঠানিক শিক্ষা ব্যুরো প্রোগ্রাম অফিসার রেজাউল করিম। অন্যান্যের মধ্যে থানা অফিসার আনচার্জ মোঃ সহিদুল ইসলাম, মাধ্যমিক শিক্ষা অফিসার আব্দুল্লাহ আল মাহমুদ, শিক্ষা অফিসার (ভারপ্রাপ্ত) আব্দুর রশিদ, কালুখালী মহিলা কলেজের অধ্যক্ষ মমতাজ আহম্মেদ, উপজেলা আনসার  ও ভিডিপি কর্মকর্তা হাওয়া খাতুন সহ অন্যান্যরা উপস্থিত ছিলেন। আলোচনায় সভাপতির বক্তব্যে সহকারী কমিশনার (ভূমি) শেখ নুরুল আমিন বলেন, সকলের প্রচেষ্টায় সাক্ষরতার হারকে বৃদ্ধি করতে হবে। যে দেশে শিক্ষার হার বেশি সে দেশ তত বেশি উন্নত। তাই আমাদের নিজ নিজ অবস্থানে থেকে শিক্ষার হার বৃদ্ধির জন্য কাজ করে যেতে হবে।

রেলওয়ের জমি থেকে দখলদার উচ্ছেদ হবেই – রেলমন্ত্রী

ঢাকা অফিস ॥ রেলওয়ের দখলকৃত জমিসহ রেলের কোয়ার্টার বা বাংলো থেকে দখলদার উচ্ছেদ করা হবে বলে জানিয়েছেন রেলমন্ত্রী নূরুল ইসলাম।গতকাল রোববার সকালে পঞ্চগড় থেকে ঢাকায় যাওয়ার পথে সৈয়দপুর বিমানবন্দরে সাংবাদিকদের প্রশ্নের উত্তরে এ কথা বলেন তিনি।রেলমন্ত্রী বলেন, রেলওয়ের জমি থেকে দখলদার উচ্ছেদ হবেই। রেলওয়ের উন্নয়নের জন্যই এটা করা হচ্ছে। পরবর্তী সময়ে এগুলো আস্তে আস্তে শৃঙ্খলার মধ্যে আনতে ব্যবস্থা নেয়া হবে।তিনি বলেন, যারা রেলওয়ের জমি বা কোয়ার্টার দখল বা বিক্রির সঙ্গে জড়িত, তাদের বিরুদ্ধে আইনি ব্যবস্থা অবশ্যই গ্রহণ করা হবে। রেলওয়ের সম্পদ কারও ব্যক্তিগত সম্পদ নয়। এটা জনগণের, তথা রাষ্ট্রের সম্পদ।‘তাই এ সম্পদ কুক্ষিগত করে কেউ ব্যক্তিস্বার্থ হাসিল করতে চাইলে তাদের কোনোভাবেই ছাড় দেয়া হবে না।’সৈয়দপুরে রেলওয়ের প্রায় ৩০০ একর জমি জবরদখল হয়ে আছে। এসব জায়গায় প্রায় এক লাখ মানুষ বসতি স্থাপন করেছেন। ২৮ সেপ্টেম্বরের মধ্যে রেলের এই জায়গা ছেড়ে দেয়ার জন্য নোটিশ দেয়া হয়েছে।এ বিষয়ে রেলমন্ত্রী বলেন, এবার উচ্ছেদ নোটিশ দেয়ার ফলে যারা দালালদের মাধ্যমে অবৈধভাবে দখল করে আছেন, তারা নতুন করে এ জায়গা ইজারা পাওয়ার জন্য আবেদন করবেন। যারা অবৈধভাবে আছেন, তাদের আবেদনের সুযোগ আছে। দালালমুক্ত হয়ে তারা আবেদন করলে সরকার তা ভেবে দেখবে।তিনি আরও বলেন, রেলওয়ের জমি ও অন্যান্য স্থাপনা নানাভাবে বেদখল হয়ে গেছে। উচ্ছেদের যে বিষয়টি এসেছে, তা অবশ্যই করা হবে। রেলওয়ের উন্নয়নের প্রয়োজনেই এমনটা করা হচ্ছে।নূরুল ইসলাম বলেন, বারবার উচ্ছেদ অভিযানের নোটিশ দেয়া হলেও তা বারবারই থমকে যায়। কিন্তু এবার কোনোভাবেই উচ্ছেদ অভিযান বন্ধ করা হবে না। যেকোনো মূল্যে অবৈধ দখলমুক্ত করতে উচ্ছেদ করা হবেই। এ ক্ষেত্রে কোনো ধরনের টালবাহানার সুযোগ নেই।

ক্রমেই খালেদা জিয়ার স্বাস্থ্যের অবনতি হচ্ছে – মির্জা ফখরুল

ঢাকা অফিস ॥ বিএনপির চেয়ারপারসন খালেদা জিয়ার স্বাস্থ্যের ক্রমান্বয়ে অবনতি হচ্ছে। এরপরও তাকে সুস্থ দেখিয়ে আবার কারাগারে পাঠানোর ‘ষড়যন্ত্র’ হচ্ছে বলে অভিযোগ করেছেন বিএনপির মহাসচিব মির্জা ফখরুল ইসলাম আলমগীর।গতকাল রোববার সকালে রাজধানীর নয়াপল্টনে দলের কেন্দ্রীয় কার্যালয়ে আয়োজিত এক সংবাদ সম্মেলনে তিনি এসব কথা বলেন। এসময় তিনি খালেদা জিয়ার সুচিকিৎসা ও মুক্তির দাবিতে কর্মসূচি ঘোষণা করেন।বিএনপির মহাসচিব বলেন, খালেদা জিয়া গত ৫ মাস ধরে বিএসএমএমইউতে হাসপাতালে আছেন। কিন্তু তার স্বাস্থ্যের ইতিবাচক কোনো পরিবর্তন দেখা যায়নি। তিনি এখনও প্রচন্ড অসুস্থ। তার স্বাস্থ্যের ক্রমান্বয়ে অবনতি হচ্ছে। অথচ খালেদা জিয়া চেয়েছেন, নিজের পছন্দমতো হাসপাতালে চিকিৎসা নিতে। কিন্তু সরকার সেটা দিচ্ছে না।খালেদা জিয়ার স্বাস্থ্য নিয়ে বিএসএমএমইউর ভিসির বক্তব্যের প্রতিবাদ জানিয়ে মির্জা ফখরুল বলেন, বিএসএমএমইউর ভিসি বলেছেন, খালেদা জিয়া সুস্থ হয়ে গেছেন, তার রোগের উপশম হয়েছে। পিজির পরিচালকও একই সুরে কথা বলেছেন। আমরা মনে করি, এসব চক্রান্তের অংশ। তাকে আবারও অসুস্থ অবস্থায় কারাগারে পাঠানোর জন্য এটা একটা ষড়যন্ত্র। খালেদা জিয়া হুইলচেয়ারেও বসতে পারেন না উল্লেখ করে তিনি বলেন, খালেদা জিয়ার পরিবার যখন গেছেন তখন দেখে আসছেন, তিনি এখনও উঠে বসতে পারেন না। তাকে দুজন ধরে ওঠাতে হয়। হুইলচেয়ারেও তিনি ঠিকভাবে বসতে পারেন না।অথচ বিএসএমএমইউর ভিসি বলছেন তিনি সুস্থ হয়ে উঠেছেন। খালেদা জিয়ার মুক্তি ও সুচিকিৎসার দাবিতে ১১ সেপ্টেম্বর ঢাকায় মানববন্ধন কর্মসূচি ঘোষণা করেন বিএনপি মহাসচিব। একই দাবিতে ১২ সেপ্টেম্বর সারা দেশে মানববন্ধন করতে দলের নেতাকর্মীদের নির্দেশ দেন তিনি। এ সময় উপস্থিত ছিলেন বিএনপির স্থায়ী কমিটির সদস্য ব্যারিস্টার মওদুদ আহমদ, ড. আবদুল মঈন খান, আমীর খসরু মাহমুদ চৌধুরী, ইকবাল হাসান টুকু, ভাইস চেয়ারম্যান এ জেড এম জাহিদ হোসেন, জ্যেষ্ঠ যুগ্ম মহাসচিব রুহুল কবির রিজভী প্রমুখ।

মিরপুর পৌরসভায় ১০ কোটি ১৭ লক্ষ টাকার বাজেট ঘোষনা

মিরপুর প্রতিনিধি ॥ কুষ্টিয়ার মিরপুর পৌরসভায় ২০১৯-২০২০ অর্থ বছরের বাজেট ঘোষনা করা হয়েছে। বাজেট অনুষ্ঠানে পৌরসভার উপ-সহকারী প্রকৌশলী আনোয়ার হোসেন ১০ কোটি ১৭ লক্ষ ৫৭ হাজার ৫২ টাকার বাজেট উপস্থাপন করেন। গতকাল রোববার সকাল ১১টায় পৌর মিলনায়তনে বাজেট ঘোষনা অনুষ্ঠানে পৌর মেয়র হাজী এনামুল হকের সভাপতিত্বে ও হিসাব রক্ষক সুজনের সঞ্চালনে উপস্থিত ছিলেন, ৬নং ওয়ার্ড কাউন্সিলর ও প্যানেল মেয়র জমির উদ্দিন, ৫নং ওয়ার্ড কাউন্সিলর জাহিদ হোসেন, ৯নং ওয়ার্ড কাউন্সিলর গণি সান্টু, ৮নং ওয়ার্ড কাউন্সিলর নাসির উদ্দিন টোকন, ১নং ওয়ার্ড কাউন্সিলর খোয়াব আলী, ৩নং ওয়ার্ড কাউন্সিলর আতিয়ার রহমান, ৪নং ওয়ার্ড কাউন্সিলর আব্দুস সালাম, সংরক্ষিত মহিলা আসনের মিনারা খাতুন, হালিমা খাতুন, লাকি খাতুন প্রমুখ। এছাড়াও পৌরসভার কর্মকর্তা/কর্মচারীগণ উপস্থিত ছিলেন। বাজেটে উন্নয়ন খাতে আয় ধরা হয়েছে ৫ কোটি ৮১ লক্ষ টাকা। প্রারম্ভিক উদ্বৃত্ত ৯২ লক্ষ ৪৬ হাজার ৮২ টাকা। বাজেটে উন্নয়ন খাতে ব্যয় ধরা হয়েছে ৬ কোটি ৬৬ লক্ষ ১ হাজার ১শ’ ৫০ টাকা। বাজেটে ট্যাক্স, রেইট, ফিস ও অন্যান্য রাজস্ব খাতে আয় ধরা হয়েছে ৩ কোটি ৪৪ লাখ ১০ হাজার ৯শ’ ৭০ টাকা, রাজস্ব খাতে ব্যয় ধরা হয়েছে ৩ কোটি ৪৭ লাখ ৬২ হাজার ২শ’ টাকা। বাজাটে রাজস্ব ও উন্নয়ন খাতে আয় ধরা হয়েছে ৯ কোটি ২৫ লক্ষ ১০ হাজার ৯শ’ ৭০টাকা ও প্রারম্ভিক উদ্বৃত্ত ৯২ লক্ষ ৪৬ হাজার ৮২ টাকা। সর্বমোট আয় ১০ কোটি ১৭ লক্ষ ৫৭ হাজার ৫২ টাকা। এবং মোট ব্যয় ১০ কোটি ১৩ লক্ষ ৬২ হাজার ২শ; টাকা। এছাড়াও পৌরসভার জলাবদ্ধতা, মেধাবী ছাত্র-ছাত্রীদের শিক্ষাবৃত্তি, প্রতিবন্ধীদের পূনর্বাসন, দুঃস্থ/গরীবদের চিকিৎসা, মশক নিধন, খেলাধুলা, বনায়ন ও দূর্যোগ ব্যবস্থাপনায় বিশেষ বরাদ্দ রাখা হয়েছে।

ইউপি চেয়ারম্যানসহ আক্রান্ত শতাধিক

ডেঙ্গু প্রতিরোধ করতে গিয়ে ডেঙ্গুতেই আক্রান্ত হলে আড়িয়া ইউপি চেয়ারম্যান

শরীফুল ইসলাম ॥ কুষ্টিয়ার দৌলতপুরে প্রতিনিয়ত বেড়েই চলেছে ডেঙ্গু আক্রান্ত রোগীর সংখ্যা। উপজেলা প্রশাসন, স্বাস্থ্য বিভাগ ও স্থানীয় ইউনিয়ন পরিষদের পক্ষ থেকে নানা পদক্ষেপ গ্রহন করার পরও ঠেকানো যাচ্ছেনা এডিস মশাকে। প্রতিদিনই নতুন নতুন এলাকায় ডেঙ্গু রোগে আক্রান্ত হওয়ার খবর পাওয়া যাচ্ছে। আড়িয়া ও খলিশাকুন্ডি ইউনিয়নের বিভিন্ন গ্রামে বর্তমানে ডেঙ্গুতে আক্রান্তের সংখ্যা শতাধিক পার হয়েছে। এডিস মশা নিধন ও আক্রান্তদের প্রাথমিক স্বাস্থ্যসেবা দেওয়াসহ ডেঙ্গু নিধন করতে গিয়ে ডেঙ্গুতে আক্রান্ত হয়েছেন আড়িয়া ইউনিয়ন পরিষদের চেয়ারম্যান সাঈদ আনছারী বিপ্লব ও স্বাস্থ্যকর্মী ওয়ালিউর রহমান। তারা বর্তমানে কুষ্টিয়া জেনারেল হাসপাতালে চিকিৎসাধীন রয়েছেন। গত মঙ্গলবার খলিষাকুন্ডি ইউনিয়নের শ্যামনগর গ্রামে ডেঙ্গুতে আক্রান্ত হয়ে জোসনা খাতুন (৫৫) নামে এক নারীর মৃত্যু হয়েছে। অপরদিকে ডেঙ্গুতে আক্রান্ত হয়ে গত ১৯ আগষ্ট সকালে বিলগাথুয়া গ্রামের চালন বেগম (৩৫) আরও এক নারীর মৃত্যু হয়েছে। ডেঙ্গুতে আক্রান্ত হওয়ার পাশাপাশি মৃত্যুর সংখ্যাও বাড়ছে। স্থানীয় স্বাস্থ্যকর্মী ও এলাকাবাসী সূত্রে জানা গেছে, দৌলতপুর উপজেলার সর্ব প্রথম আড়িয়া ইউনিয়নে ছাতারপাড়ার দাড়পাড়া গ্রামের ডেঙ্গু রোগী শনাক্ত হয়। বর্তমানে ওই গ্রামে ডেঙ্গু আক্রান্তের সংখ্যা বেড়ে ৫২ জন ছাড়িয়েছে। ডেঙ্গু রোগের কারণ অনুসন্ধান ও তথ্য সংগ্রহে গত সপ্তাহে স্বাস্থ্য অধিদপ্তরের রোগতত্ত্ব, রোগনিয়ন্ত্রন ও গবেষণা ইনষ্টিটিউট (আইইডিসিআর) এর ৪ সদস্যের বিশেষজ্ঞ দল ছাতারপাড়ার দাড়পাড়া গ্রামে কাজ করেছেন। সব মিলিয়ে আড়িয়া ইউনিয়নেই ৮০ জন ডেঙ্গু রোগীকে শনাক্ত করা হয়েছে। এছাড়া পার্শ¦বর্তী খলিশাকুন্ডি ইউনিয়নের কয়েকটি গ্রামে শনাক্ত করা হয়েছে আরও প্রায় ৩০ জনকে। এছাড়াও উপজেলা সংলগ্ন সেন্টারপাড়া, রিফায়েতপুর, শিতলাইপাড়া, মহিষকুন্ডি, বৈরাগীরচর গ্রামে  প্রায় ১৫ জন ডেঙ্গু রোগে আক্রান্তের খবর পাওয়া গেছে। শনিবার বিকেলে উপজেলা সংলগ্ন সেন্টারপাড়া এলাকার মৃত রফিকুল ইসলামের স্ত্রী শাহীনা খাতুন (৬০) ডেঙ্গু আক্রান্ত হয়ে কুষ্টিয়া হাসপাতালে ভর্তি হয়েছেন। বৈরাগীরচর গ্রামের ৪জন ডেঙ্গু আক্রান্ত হয়ে কয়েকদিন আগে কুষ্টিয়া হাসপাতালে ভর্তি হয়েছেন। স্থানীয় স্বাস্থ্য বিভাগের তথ্যমতে, প্রতিদিনই বাড়ছে ডেঙ্গু রোগে আক্রান্তের সংখ্যা। ডেঙ্গু প্রতিরোধে যারা কাজ করছেন তারাও রয়েছেন শংকার মধ্যে। ডেঙ্গু রোগিদের প্রাথমিক স্বাস্থ্যসেবা ও রোগি শনাক্তকরণের কাজ করার কাজে নিয়োজিত ছিলেন ছাতারপাড়া কমিউিনিটি ক্লিনিকে কর্মরত সিএইসিপি ওয়ালিউর রহমান। তিনিও গত বুধবার ডেঙ্গুতে আক্রান্ত হয়ে কুষ্টিয়া জেনারেল হাসপাতালে চিকিৎসাধীন রয়েছেন। এছাড়াও শনিবার আড়িয়া ইউনিয়ন পরিষদের চেয়ারম্যান সাঈদ আনছারী বিপ্লব ডেঙ্গু রোগে আক্রান্ত হয়েছেন। পরিস্কার পরিচ্ছন্নতা অভিযানসহ ডেঙ্গু প্রতিরোধে নিরলস শ্রম দিয়ে তিনিও ডেঙ্গুতে আক্রান্ত হয়েছেন। এছাড়াও তিনি ডেঙ্গু রোগীদের প্রয়োজনীয় চিকিৎসা ও ডেঙ্গু রোগী শনাক্তে স্থানীয় স্বাস্থ্য বিভাগের স্বাস্থ্যকর্মীদের সমন্বয়ে টিম কাজ করছেন। আড়িয়া ইঊনিয়ন পরিষদের চেয়ারম্যান সাঈদ আনছারী বিপ্লব বলেন, তার ইউনিয়নের মানুষ সবচেয়ে এডিস মশার আক্রমনের শিকার হয়ে ডেঙ্গুতে আক্রান্ত হয়েছেন। জেলা ও উপজেলা প্রশাসনের নির্দেশ মোতাবেক দিন রাত সেখানে কাজ করছেন। ডেঙ্গু প্রতিরোধে কাজ করতে গিয়ে নিজেও ডেঙ্গু রোগে আক্রান্ত হয়েছেন বলে তিনি জানান।  দৌলতপুর উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা শারমিন আক্তারের নেতৃত্বে আড়িয়া ও খলিশাকুন্ডি ইউনিয়নের গ্রামগুলোতে প্রতিদিনই পরিস্কার পরিচ্ছনতা অভিযান, এডিস মশা ও তার লার্ভা নিধনে ঔষধ স্প্রে এবং জনসচেতনতা মূলক কার্যক্রম চালানো হয়েছে এবং তা চলমান রয়েছে।  এবিষয়ে  উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা শারমিন আক্তার বলেন, উপজেলা প্রশাসনের পক্ষ থেকে সর্বোচ্চ সতর্কতা অবলম্বন ও মশা নিধনে প্রয়োজনীয় সকল ব্যবস্থা গ্রহন করার পরও কেন এডিস মশা ও ডেঙ্গুতে রোগ নিয়ন্ত্রন করা যাচ্ছে না সে বিষয়ে নতুন পরিকল্পনা করা হচ্ছে। এ বিষয়ে গ্রামবাসীকেও আরো সচেতন হওয়ার পরামর্শ দেন তিনি। সর্বপরি ডেঙ্গু নিয়ন্ত্রনে শুধু প্রশাসন ও স্বাস্থ্য বিভাগের ওপর নির্ভর না করে নিজ নিজ বাড়ির আঙিনা পরিস্কার করার পাশাপাশি সকলে নিজ নিজ দায়িত্বে সচেতন হলে অপরকে সচেতন করলে ডেঙ্গু অনেক ক্ষেত্রেই নিয়ন্ত্রনে আসবে। আর এমনটাই মনে করেন সচেতন মহল।

জাপায় সমঝোতা

রওশন বিরোধী দলীয় নেতা, জিএম কাদের চেয়ারম্যান

ঢাকা অফিস ॥ রওশন এরশাদ হবেন সংসদে বিরোধী দলীয় নেতা, জি এম কাদের থাকবেন দলের চেয়ারম্যান হিসেবে। গতকাল রোববার সকালে বনানীতে জাপা চেয়ারম্যানের রাজনৈতিক কার্যালয়ে সংবাদ সম্মেলনে এ কথা জানান জাপা মহাসচিব মসিউর রহমান রাঙ্গাঁ। রংপুর-৩ উপনির্বাচনে জাপার প্রার্থী কে হবেন, এ বিষয়ে জি এম কাদের ও মসিউর রহমান রাঙ্গাঁ পরে সিদ্ধান্ত নেবেন। রোববার দুপুরে সংসদে পার্লামেন্টারি পার্টির বৈঠক রয়েছে জাপার। সে সভার পর গতকালই বিরোধী দলীয় নেতা নির্ধারণে স্পিকারকে চিঠি দিতে পারে জাপা। নিজের লুকিয়ে থাকার বিষয়ে তিনি বলেন, ‘পরিবারে পিতামাতা যখন বিবাদে জড়ান, তখন সন্তানরা বিপদে পড়েন। দলে বড় ভাই হিসেবে আমি কিছুটা সরে পড়েছিলাম। তবে গত তিনদিনে আমি সর্বাত্মক চেষ্টা করে গতকালের বৈঠক আয়োজন করেছি। একটা বড় ধরণের ভাঙন থেকে জাপা রক্ষা পেয়েছে।’ আনিসুল ইসলাম মাহমুদ, ফখরুল ইমামদের শৃঙ্খলা ভাঙার অভিযোগে দল থেকে বহিষ্কারের কথা শোনা যাচ্ছিলো- এ বিষয়ে প্রশ্ন করা হলে রাঙ্গাঁ বলেন, এটা আর হচ্ছে না। এ বিষয়ে আর কোনো অগ্রগতি নেই। এর আগের দিন রাজধানীর বারিধারা ক্লাবে সমঝোতার লক্ষ্যে রওশন এরশাদ ও জিএম কাদের বলয়ের কয়েক নেতা দীর্ঘ বৈঠক করেছেন। বৈঠকে তারা একটি সমঝোতায় পৌঁছে। এই সমঝোতা বৈঠকে জিএম কাদেরের পক্ষে ছিলেন- দলের প্রেসিডিয়াম সদস্য কাজী ফিরোজ রশীদ এমপি, জিয়াউদ্দিন আহমেদ বাবলু, সৈয়দ আবু হোসেন বাবলা এমপি ও লে. জে. (অব.) মাসুদ উদ্দিন চৌধুরী। আর রওশন বলয়ের পক্ষে উপস্থিত ছিলেন জাপার প্রেসিডিয়াম সদস্য মুজিবুল হক চুন্নু এমপি, ফখরুল ইমাম এমপি, এসএম ফয়সল চিশতি ও সেলিম ওসমান এমপি।

কুষ্টিয়া জেলা জাতীয় মানবাধিকার সমিতির কমিটির নাম ঘোষণা

গতকাল রবিবার বাংলাদেশ জাতীয় মানবাধিকার সমিতির চেয়ারম্যান মো. মঞ্জুর হোসেন ঈসা ও মহাসচিব মোহাম্মদ মফিজুর রহমান লিটন এবং সাংগঠনিক সম্পাদক এ্যাড. সাইফুল ইসলাম সেফুল সংগঠনের কার্যক্রমকে আরো গতিশীল করার জন্য কুষ্টিয়া জেলা কমিটির নাম  ঘোষণা করেন। সভাপতি- জান্নাতুল ফেরদৌস, সিনিয়র সহ সভাপতি- অর্পন মাহমুদ, সহ সভাপতি- সাজেদুল ইসলাম ডালিম, সাধারণ সম্পাদক- শাহারিয়া ইমন রুবেল, সিনিয়র যুগ্ম সাধারণ সম্পাদক- মো. রাব্বি আল আমিন, যুগ্ম সাধারণ সম্পাদক- উৎপল বিশ্বাস, সাংগঠনিক সম্পাদক- অঞ্জন কৃষ্ণ শীল, সহ সাংগঠনিক সম্পাদক- সৈয়দ মশফিকুর রহমান প্রদীপ, অর্থ সম্পাদক- শরীফুল ইসলাম শরীফ, দপ্তর সম্পাদক- জুলিয়া পারভীন, প্রচার সম্পাদক- এস.এম জামাল, যুব সম্পাদক- এড. সঞ্জয় কুমার ঘোষ, নির্বাহী সদস্য- মোফাজ্জেল হক, মো. জামসেদুল হক জুয়েল, সাবিনা সুলতানা শিল্পী, আশিকুর রহমান, কে.এম শাহীন, মো. রবিউল ইসলাম রাব্বি, মো. মামুন, মো. শরিফুল ইসলাম, কনক, মো. রাকিবুল ইসলাম। আগামী ২ বছরের জন্য এই কমিটি অনুমোদন করা হল এবং আগামী ৩ মাসের মধ্যে কুষ্টিয়া জেলার প্রতিটি থানা ও উপজেলা কমিটি গঠনের জন্য নির্দেশ প্রদান করা হল। সংবাদ বিজ্ঞপ্তি

কুষ্টিয়ার মিরপুরে সাপের কামড়ে গৃহবধুর মৃত্যু

মিরপুর প্রতিনিধি ॥ কুষ্টিয়ার মিরপুরে নিজ শয়নকক্ষ থেকে সাপের কামড়ে বিলকিস খাতুন (৩৬) নামের এক গৃহবধুর মৃত্যু হয়েছে। গতকাল রবিবার   সকালে উপজেলার মালিহাদ ইউনিয়নের কাকিলাদহ এলাকায় এ ঘটনা ঘটে। নিহত বিলকিস খাতুন উক্ত এলাকার সাদিকুল ইসলামের স্ত্রী। সে তিন সন্তানের জননী ছিলো। স্থানীয়রা জানায়, নিজ শয়নকক্ষে প্রতিদিনের ন্যায় রাতে ঘুমিয়ে ছিলো বিলকিস। মধ্যরাতে দড়ির ন্যায় কিছু গায়ের সাথে জড়িয়ে রয়েছে এমন অনুভূতিতে ঘুম ভেঙ্গে যায়। পরে সাপ-সাপ বলে চিৎকার করে বিলকিস। এসময় বাড়ীর লোকজন গিয়ে দেখে বিলকিসের মাথার চুলে একটি বিষধর সাপ আটকে আছে। লোকজন সাপটিকে মেরে ফেলে। এদিকে এর মধ্যেই সাপটি বিলকিসকে কামড় দেয়। স্থানীয়ভাবে রাতভর বৈদ্য/ওঝার শরনাপন্ন হয়। পরে সকালে বিলকিসের মৃত্যু হয়। বিলকিসের স্বামী সাদিকুল ইসলাম এ ঘটনার সত্যতা নিশ্চিত করেন।

বঙ্গবন্ধু পরিষদের আয়োজনে আলোচনা সভা ও পুরুস্কার বিতরণ

জাতীয় শোক দিবস পালন উপলক্ষে বঙ্গবন্ধু পরিষদ কুষ্টিয়া জেলা শাখার আয়োজনে মাসব্যাপী কর্মসূচির অংশ হিসেবে চিত্রাংকন ও আবৃতি প্রতিযোগীতা অনুষ্ঠিত হয়েছিলো, সেই প্রতিযোগীতার পুরস্কার বিতরণ করা হয়েছে। রবিবার বিকালে আমলাপাড়াস্থ কুষ্টিয়া চারুকলার হল রুমে এ অনুষ্ঠান হয়। বঙ্গবন্ধু পরিষদ কুষ্টিয়া জেলা শাখার সভাপতি মতিউর রহমান লাল্টুর সভাপতিত্বে এ অনুষ্ঠান হয়। বঙ্গবন্ধু পরিষদ কুষ্টিয়া জেলা শাখার সাধারণ সম্পাদক এ্যাড.শামসুর রহমান বাবুর সঞ্চালনায় অনুষ্ঠানে আরো বক্তব্য রাখেন, বঙ্গবন্ধু পরিষদ কুষ্টিয়া জেলা শাখার সিনিয়র সহ-সভাপতি এ্যাড.নজরুল ইসলাম সরকার, যুগ্ম সম্পাদক ড.আমানুর আমান প্রমুখ। সংবাদ বিজ্ঞপ্তি।

পবিত্র মহররম-এ- আশুরা উপলক্ষে

হযরত বাবা নফর শাহ্ মাজার কমিটির পক্ষ থেকে তাজিয়া মিছিলের আয়োজন

নিজ সংবাদ ॥ প্রতিবারের ন্যায় এবারও হযরত বাবা নফর শাহ্ (রহঃ) এর মাজার কমিটির আয়োজনে, পবিত্র মহররম-এ- আশুরা উপলক্ষে এক তাজিয়া মিছিলের আয়োজন করা হয়েছে। আগামী ১০ মহররম ১৪৪১ হিজরী/১০ সেপ্টেম্বর ২০১৯ খ্রি. মঙ্গলবার সকাল ১০ টায়  হযরত বাবা নফর শাহ্ (রহঃ) এর মাজার প্রাঙ্গন হতে এ তাজিয়া মিছিল বের করা হবে। তাজিয়া মিছিলটি মীর মশাররফ হোসেন সড়ক হয়ে পৌর ১নং গোরস্থানে জিয়ারত শেষে আর সি আর সি স্ট্রীটে বার শরীফ দরবারে জিয়ারত শেষে বক চত্বর থানার মোড় হয়ে এনএস রোড দিয়ে বড় বাজার রেল গেট হয়ে মাজার প্রাঙ্গনে ফিরে আসবে। উক্ত তাজিয়া মিছিলে সকল ভক্ত ও আশেকানদের অংশ গ্রহণ করার জন্য মাজার কমিটির পক্ষ থেকে বিশেষভাবে অনুরোধ জানানো হয়েছে। আমন্ত্রণে হযরত বাবা নফর শাহ্ (রহঃ) এর মাজার কমিটির সাধারণ সম্পাদক মোঃ রেজাউল হক।

নানা নাটকীয়তার পর এরশাদের আসনে সাদই প্রার্থী

ঢাকা অফিস ॥ দলের প্রতিষ্ঠাতা হুসেইন মুহম্মদ এরশাদের মৃত্যুতে শূন্য রংপুর-৩ আসনে উপনির্বাচনে তার ছেলে রাহগীর আল মাহী সাদকেই (সাদ এরশাদ) প্রার্থী করছে জাতীয় পার্টি। এই উপনির্বাচনে প্রার্থী ঠিক করা নিয়ে বিভেদ থেকে নানা নাটকীয় ঘটনা এবং জাতীয় পার্টি ভেঙে যাওয়ার উপক্রম হয়েছিল। কিন্তু শনিবার সমঝোতা বৈঠকের পর রোববার বনানীতে জাতীয় পার্টির চেয়ারম্যানের রাজনৈতিক কার্যালয়ে দলের ১৪ জ্যেষ্ঠ নেতাকে নিয়ে আলোচনা করে দলের মহাসচিব মসিউর রহমান রাঙ্গাঁ সাংবাদিকদের বলেন, “রংপুর-৩ আসনের উপনির্বাচনে জাতীয় পার্টির প্রার্থী হচ্ছেন সাদ এরশাদ।” এরশাদের স্ত্রী ও দলের জ্যেষ্ঠ কো-চেয়ারম্যান রওশন এই আসনে ছেলে সাদকে প্রার্থী করতে চাইলেও তার বিরোধিতা করছিলেন রংপুরের নেতারা। এরশাদের ভাতিজা সাবেক সাংসদ হোসেন মকবুল শাহরিয়ার আসিফের সমর্থকরা সাদের কুশপুতুল পোড়ান। এর মধ্যে দলের চেয়ারম্যান ও সংসদে বিরোধীদলীয় নেতার পদ নিয়ে রওশন এবং তার দেবর জি এম কাদেরের দ্বন্দ্ব চরমে উঠে। ফলে এরশাদের আসনে প্রার্থী ঘোষণা আটকে যায়। তবে শনিবার সমঝোতার আভাস দিয়ে এরশাদের ভাই দলের চেয়ারম্যানের দায়িত্ব পালনকারী জিএম কাদের বলেন, তারা অন্য দলগুলোর প্রার্থী দেখে তাদের প্রার্থীর নাম জানাবেন। এর মধ্যে আওয়ামী লীগ তাদের প্রার্থী হিসেবে রংপুর জেলা আওয়ামী  লীগের সাধারণ সম্পাদক রেজাউল করিম রাজু এবং বিএনপি তাদের প্রার্থী হিসেবে জোটভুক্ত দল পিপিবির সভাপতি রিটা রহমানের নাম ঘোষণা করে। এরপর জাতীয় পার্টির প্রার্থীর নাম ঘোষণা হলেও রোববার বিকাল পর্যন্ত সাদ এরশাদ তার মনোনয়ন প্রাপ্তির বিষয়টি ‘জানেন না’ বলে জানিয়েছেন।তিনি বলেন, “আমি এখনও এ মনোনয়ন প্রাপ্তির বিষয়টি জানি না। মনোনয়ন পেলে তো ঠিক আছে। তবে আগে শুনি, তারপর বলতে পারব বিস্তারিত।”নানা কা-ে বিতর্কের জন্ম দেওয়া সাদকে বাবা এরশাদ রাজনীতি থেকে সরিয়ে বিদেশে রাখলেও তাকে রাজনীতির ময়দানে নিয়ে আসতে সচেষ্ট ছিলেন মা রওশন।২০০০ সালে নারীঘটিত এক বিষয়ে গ্রেপ্তার হয়েছিলেন সাদ। এরপর তাকে বিদেশে পাঠিয়ে দিয়েছিলেন এরশাদ।এরশাদ অসুস্থ থাকার মধ্যে একাদশ জাতীয় সংসদ নির্বাচনের আগে সাদকে দেখা যায় জনসম্মুখে। মা রওশনের সঙ্গে বিভিন্ন সভায় আসতে শুরু করেন তিনি। এরশাদের মৃত্যুর পর তিনি আরও সক্রিয়। দীর্ঘ দিন মালয়েশিয়ার প্রবাস জীবন শেষে সাদ এখন ঢাকাতে থিতু হয়েছেন। জাতীয় পার্টির দপ্তর বিভাগ জানিয়েছে, সাদ এখন ব্যবসা করেন। নির্বাচন কমিশন ঘোষিত তফসিল অনুযায়ী, আগামী ৫ অক্টোবর রংপুর-৩ আসনে উপনির্বাচন হবে। এই নির্বাচনে অংশ নিতে মনোনয়নপত্র দাখিল করতে হবে ৯ সেপ্টেম্বরের মধ্যে। তফসিল ঘোষণার পর জাতীয় পার্টি প্রার্থী ঠিক করার জন্য মনোনয়ন ফরম বিক্রি শুরু করতেই তা সংগ্রহ করেন সাদ। তখনই দলটিতে শুরু হয় গৃহবিবাদ। এরশাদের ভাতিজা আসিফ শাহরিয়ার ছাড়াও ভাগ্নি মেহেজেবেন্নুসা রহমান টুম্পাও এই আসনে মনোনয়নপ্রত্যাশী ছিলেন। এছাড়াও প্রার্থী হতে চাইছিলেন দলের সভাপতিমন্ডলীর সদস্য এস এম ফখর উজ জামান জাহাঙ্গীর, সাংগঠনিক সম্পাদক আব্দুর রাজ্জাক, যুগ্ম মহাসচিব এস এম ইয়াসির। ইয়াসির মনোনয়নপত্র কেনার সময় এরশাদের ছোট ছেলে শাহতা জারাব এরিককে (বিদিশার সন্তান) সঙ্গে নিয়েছিলেন, যা নিয়ে শুরু হয়েছিল ব্যাপক আলোচনা। সাদের বিরোধিতায় রংপুরের মেয়র ও মহানগর জাতীয় পার্টির সভাপতি মোস্তাফিজার রহমান মোস্তফা সরব হওয়ার পর জি এম কাদেরের পক্ষ ইয়াসিরকে প্রার্থী করতে চাইছিল বলে দলটির কয়েকজন নেতার কাছে শোনা গেছে। এদিকে সাদকে মনোনয়ন দেওয়ার খবর রংপুরে যেতেই ক্ষুব্ধ হয়ে উঠেছেন জাতীয় পার্টির স্থানীয় নেতারা।

এস এম ইয়াসির বলেন, “এমন সিদ্ধান্তে জাতীয় পার্টির নেতাকর্মীরা ভীষণ মর্মাহত। এত দিন ধরে দলকে আমি এত সার্ভিস দিয়ে আসলাম। কিন্তু দল আমাকে মূল্যায়ন করল না।”স্বতন্ত্র প্রার্থী হওয়ার ইঙ্গিত দিয়ে তিনি বলেন, “আমি যদি নির্বাচন করি, তবে আমি জাতীয় পার্টি থেকে নয়, স্বতন্ত্র হিসেবে নির্বাচন করব। জাতীয় পার্টির নাম আমি কোথাও ব্যবহারও করব না।”রংপুর মহানগর জাতীয় পার্টির কেউ সাদ এরশাদের পক্ষে কাজ করবেন না বলে আগেই জানিয়ে দিয়েছেন মোস্তাফিজার রহমান মোস্তফা।এরশাদের আসনে গত কয়েকবার মহাজোট শরিক হিসেবে জাতীয় পার্টিকে আওয়ামী লীগ ছাড় দিলেও এবার তারাও প্রার্থী দিচ্ছে, যা লাঙ্গল প্রতীকের প্রার্থীর জন্য চ্যালেঞ্জের। তবে ১৯৮৬ সালে জাতীয় পার্টির প্রার্থী শফিকুল গণি স্বপন জেতার পর থেকে এই আসনটি আর কখনও হাতছাড়া হয়নি তাদের। এই স্বপনের বোন হলেন বিএনপির এবারের প্রার্থী রিটা।

ইবিতে জাতীয় শুদ্ধাচার কৌশল বাস্তবায়নের অংশ হিসাবে স্বচ্ছ অভিযোগ বক্সের উদ্বোধন

ইসলামী বিশ্ববিদ্যালয়ের প্রশাসন ভবনের নিচতলায় রবিবার বিশ্ববিদ্যালয়ের সকল ধরনের কার্যক্রমের স্বচ্ছতা, জবাবদিহিতা, দূর্নীতিমুক্ত ও  সুশাসন নিশ্চিত করবার জন্য বর্তমান প্রশাসন যে নিরলসভাবে কাজ করে যাচ্ছে তারই ধারাবাহিকতায় জাতীয় শুদ্ধাচার কৌশল বাস্তবায়নের জন্য অভিযোগ প্রতিকার ব্যবস্থাপনা কমিটির আওতায় স্বচ্ছ অভিযোগ বক্স স্থাপন করা হয়। স্বচ্ছ অভিযোগ বক্স স্থাপন এর উদ্বোধনী অনুষ্ঠানে ভাইস-চ্যান্সেলর প্রফেসর ড. মোঃ হারুন-উর-রশিদ আসকারী (ড. রাশিদ আসকারী) বলেন, বিশ্ববিদ্যালয়ে প্রশাসনের দায়িত্ব গ্রহনের পর আমাদের প্রথম এজেন্ডা ছিল ক্যাম্পাসকে দূর্নীতিমুক্ত করা এবং সুশাসন ও জবাবদিহিতা নিশ্চিত করা। তিনি বলেন, বিশ্ববিদ্যালয় পরিবারের যে কেউ এখানে বস্তুনিষ্ট অভিযোগ দিতে পারবে এবং অভিযোগের প্রতিকার করা হবে। প্রো-ভাইস-চ্যান্সেলর প্রফেসর ড. মোঃ শাহিনুর রহমান তাঁর বক্তব্যে বলেন, জাতীয় শুদ্ধাচারের অংশ হিসাবে আজ ক্যাম্পাসে এই স্বচ্ছ অভিযোগ বক্সের উদ্বোধন করা হলো। আমাদের সরকার প্রধান স্বচ্ছতা, জবাবদিহিতা  এবং  দূর্নীতিমুক্ত ভাবে দেশ পরিচালনা করে যাচ্ছেন। আমরাও বিশ্ববিদ্যালয় পরিচালনায় সুশাসন ও জবাবদিহিতা নিশ্চিত করতে চাই।  ট্রেজারার প্রফেসর ড. মোঃ সেলিম তোহা তাঁর বক্তব্যে বলেন, বর্তমান সরকারের দক্ষ ও বলিষ্ট নেতৃত্বে দেশে সুশাসন ও জবাবদিহিতা নিশ্চিত হয়েছে এবং সকল ধরনের দূর্নীতির বিরুদ্ধে জিরো টলারেন্স ঘোষনা করা হয়েছে। এরই প্রয়াসে এই স্বচ্ছ অভিযোগ বক্সটি অভিযোগ প্রতিকার ব্যবস্থাপনায় গুরুত্বপূর্ণ ভুমিকা রাখবে। স্বচ্ছ অভিযোগ বক্স স্থাপন এর উদ্বোধনী অনুষ্ঠানে বিশ্ববিদ্যালয়ের রেজিস্ট্রার(ভারঃ) এস.এম আব্দুল লতিফ, প্রফেসর ড. মাহবুবর রহমান সিন্ডিকেট সদস্য, অভিযোগ প্রতিকার ব্যবস্থাপনা কমিটির আহবায়ক প্রক্টর(ভারঃ) ড. আনিচুর রহমান, ছাত্র-উপদেষ্টা প্রফেসর ড. পরেশ চন্দ্র বমর্¥ণসহ সকল স্তরের শিক্ষক, কর্মকর্তা ও কর্মচারীবৃন্দ উপস্থিত ছিলেন। সংবাদ বিজ্ঞপ্তি।

দেশকে মাদক ও অবক্ষয় থেকে রক্ষায় খেলাধুলার বিকল্প নেই – তথ্যমন্ত্রী

ঢাকা অফিস ॥ তথ্যমন্ত্রী ড. হাছান মাহমুদ বলেছেন, দেশকে মাদকমুক্ত ও সমাজকে অবক্ষয় থেকে রক্ষা করতে খেলাধুলার কোন বিকল্প নেই। তরুণ প্রজন্মকে মাদকাসক্তি, জঙ্গিবাদ, সন্ত্রাসবাদ এবং সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমের আসক্তি থেকে দূরে রাখতে সকলকে খেলাধুলায় আরো বেশি করে সম্পৃক্ত করার আহ্বান জানান তিনি। গতকাল রোববার ঢাকা রিপোর্টার্স ইউনিটি আয়োজিত বার্ষিক ফুটবল টুর্নামেন্টের ফাইনালে প্রধান অতিথির বক্তৃতায় হাছান মাহমুদ আরো বলেন, ‘থাইল্যান্ডকে হারিয়ে আইসিসি নারী টি-টোয়েন্টি বিশ্বকাপ ক্রিকেটের বাছাইপর্বে বাংলাদেশ নারী দল টানা দ্বিতীয় বার চ্যাম্পিয়ন হওয়ার পাশাপাশি অস্ট্রেলিয়ায় আসন্ন নারী টি-টোয়েন্টি বিশ্বকাপে খেলার যোগ্যতা অর্জন করেছে। ক্রীড়া ক্ষেত্রে বর্তমান প্রধানমন্ত্রীর আন্তরিকতার কারণেই এটি সম্ভব হয়েছে। শুধু তাই নয়, নারী ফুটবল দলও পাকিস্তান-ভারতের মতো দলকে বড় ব্যবধানে পরাজিত করার কৃতিত্ব দেখিয়েছে। আর সেটি সম্ভব হয়েছে বর্তমান প্রধানমন্ত্রীর আন্তরিকতায় নারীর ক্ষমতায়নের কারণে। এক প্রশ্নের জবাবে তথ্য মন্ত্রী বলেন, ‘মানববন্ধনের নামে অতীতের মতো বিএনপি জ্বালাও-পোড়াও ও ভাংচুরের রাজনীতি করলে তা প্রতিহত করবে জনগণ।’

জাতীয় পার্টিতে অস্থিরতা সম্পর্কে হাছান মাহমুদ বলেন, আওয়ামী লীগ চায় শক্তিশালী বিরোধী দল। এক্ষেত্রে জাতীয় পার্টিতে চলমান অস্থিরতা দূরীকরণে তাদের নেতাদের মধ্যে সমঝোতা রাজনীতিতে অবশ্যই শুভ লক্ষণ। হোসেন শহীদ সোহরাওয়ার্দীর ১২৭তম জন্মবার্ষিকী উপলক্ষে মন্ত্রী বলেন, তিনি ছিলেন গণতন্ত্রের মানস পুত্র। অপসংস্কৃতি আর অপরাজনীতি প্রতিরোধে হোসেন শহীদ সোহরাওয়ার্দীর আদর্শ অনুকরণীয়।’এর আগে ঢাকা রিপোর্টার্স ইউনিটি আয়োজিত বার্ষিক ফুটবল টুর্নামেন্টের ফাইনাল উপভোগ করেন তথ্যমন্ত্রী। টুর্নামেন্টে চ্যাম্পিয়ন হয়েছে আরটিভি। রাজধানীর পল্টনস্থ এম মনসুর আলী জাতীয় হ্যান্ডবল স্টেডিয়ামে টুর্নামেন্টের ফাইনালে টাই-ব্রেকারে চ্যানেল টোয়েন্টিফোরকে ৩-১ গোলে হারিয়ে চ্যাম্পিয়ন হয় আরটিভি।নির্ধারিত সময়ের খেলা ২-২ গোলে সমতায় শেষ হয়। প্রতিযোগিতা শেষে চ্যাম্পিয়ন ও রানার-আপ দলের মধ্যে পুরস্কার বিতরণ করেন তথ্যমন্ত্রী হাছান মাহমুদ। এসময় অন্যান্যের মধ্যে উপস্থিত ছিলেন পৃষ্ঠপোষক প্রতিষ্ঠান ওয়ালটনের কর্মকর্তা এফএম ইকবাল বিন আনোয়ার, ডিআরইউ‘র সভাপতি ইলিয়াস হোসাইন, সাধারণ সম্পাদক কবির আহমেদ খান, ক্রীড়া সম্পাদক শফিকুল ইসলাম শামীম এবং সাবেক সাধারণ সম্পাদক সৈয়দ শুকুর আলী শুভ। প্রতিযোগিতায় মোট ৪০টি গণমাধ্যম অংশগ্রহণ করে।

দৌলতপুরে পূর্ব শত্র“তার জের ধরে প্রতিপক্ষের হামলায় যুবক নিহত : আহত-১

দৌলতপুর প্রতিনিধি ॥ কুষ্টিয়ার দৌলতপুরে পূর্ব শত্র“তার জের ধরে প্রতিপক্ষেশর হামলায় রাশেদুল ইসলাম (২৮) নামে এক যুবক নিহত হয়েছেন। এ ঘটনায় বাহাদুর নামে অপর একজন আহত হয়ে দৌলতপুর হাসপাতালে চিকিৎসাধীন রয়েছেন। শনিবার রাতে উপজেলার হোগলবাড়িয়া ইউনিয়নের গাছের দিয়াড় গ্রামে হত্যাকান্ডের এ ঘটনা ঘটেছে। এলাকাবাসী ও নিহতের চাচাত ভাই মাহাবুল ইসলাম সূত্রে জানাগেছে, শনিবার রাত সাড়ে ৭টার দিকে রাশেদুল ইসলাম ও বাহাদুর ফুটবল খেলা দেখে বাড়ি ফেরার পথে পূর্ব শত্র“তার জের ধরে গাছের দিয়াড় ঈদগাহ মাঠের কাছে প্রতিপক্ষ তাহের, খোকন ও টোকনসহ ১০-১২ জন রাশেদুল ইসলাম ও বাহাদুরের ওপর হামলা চালিয়ে তাদের লোহার রড ও হাতুড়ি দিয়ে পিটিয়ে আহত করে পালিয়ে যায়। এলাকাবাসী গুরুতর আহত অবস্থায় রাশেদুল ইসলাম ও বাহাদুরকে উদ্ধার করে প্রথমে দৌলতপুর হাসপাতালে নিলে আশংকাজনক অবস্থায় রাশেদুল ইসলামকে কুষ্টিয়া জেনারেল হাসপাতালে রেফার্ড করা হয়। সেখানে চিকিৎসাধীন অবস্থায় রাত সাড়ে ১১টায় রাশেদুল ইসলাম মারা যান। নিহত রাশেদুল ইসলাম গাছের দিয়াড় গ্রামের মোস্তফার ছেলে। আহত বাহাদুর দৌলতপুর হাসপাতালে চিকিৎসাধীন রয়েছেন। হত্যাকান্ডের বিষয়ে দৌলতপুর থানার ওসি এস এম আরিফুর রহমান বলেন, পূর্ব শত্র“তার জের ধরে এ হত্যাকান্ডের ঘটনা ঘটে থাকতে পারে। এ ঘটনায় মামলা হয়েছে। হত্যাকান্ডের সাথে জড়িতদের দ্রুত গ্রেফতারে করে আইনের আওতায় নেওয়া হবে। এদিকে নিহত রাশেদুল ইসলামের লাশের ময়নাতদন্ত শেষে গতকাল বিকেলে নিহতের পরিবারের নিকট হস্তান্তর করা হলে তার দাফন সম্পন্ন করা হয়। উল্লেখ্য, ঈদ উল আযহার আগের রাতে ফুটবল খেলা নিয়ে একই গ্রামের খোকন ও টোকনের সাথে রাশেদুল ইসলাম এবং বাহাদুরের সংঘর্ষ হয়। সংঘর্ষে খোকনের মাথা ফেটে আহত হলে রাশেদুল ইসলাম ও বাহাদুরসহ আরও কয়েকজনকে আসামী করে খোকনের পিতা সৈফুল ইসলাম বাদী হয়ে দৌলতপুর থানায় অভিযোগ দেন। এরপর থেকে উভয় পক্ষের মধ্যে উত্তেজনা বিরাজ করছিল। এরই সূত্রধরে শনিবার রাতে গাছেরদিয়াড় ঈদগাহ মাঠের কাছে পূর্ব থেকে ওঁৎ পেতে থাকা তাহের, খোকন ও টোকনসহ ১০-১২ জনের একটি সশস্ত্র সংঘবদ্ধ প্রতিপক্ষ রাশিদুল ইসলাম ও বাহাদুরের ওপর হামলা চালিয়ে তাদেরকে হাতুড়ি ও লোহার রড দিয়ে পিটিয়ে গুরুতর আহত করে পালিয়ে যায়। আহত রাশেদুল ইসলাম কুষ্টিয়া জেনারেল হাসপাতালে চিকিৎসাধীন অবস্থায় মারা যান। বাহাদুর দৌলতপুর হাসপাতালে চিকিৎসাধীন রয়েছেন।