ঝিনাইদহে নারীর প্রতি সহিংসতা প্রতিরোধে মানববন্ধন ও সংবাদ সম্মেলন

ঝিনাইদহ প্রতিনিধি ॥ ‘ইশারা ভাষা সবার অধিকার’ এ শ্লোগানকে সামনে রেখে আর্ন্তজাতিক ইশারা ভাষা দিবস ও শ্রবণ প্রতিবন্ধী সপ্তাহ উপলক্ষে ঝিনাইদহে নারীর প্রতি সহিংসতা প্রতিরোধে মানববন্ধন কর্মসূচী পালিত হয়েছে। গতকাল রোববার সকালে ঝিনাইদহ প্রেসক্লাবের সামনে সেন্টার ফর ডিজএ্যাবিলিটি ইন ডেভেলপমেন্ট (সিসিডি) এর আয়োজনে এ কর্মসূচীর আয়োজন করে এইড ফাউন্ডেশন। ঘন্টাব্যাপী চলা এই কর্মসূচীতে ব্যানার ফেস্টুন নিয়ে শহরের বিভিন্ন এলাকার বাক ও শ্রবণ প্রতিবন্ধীরা অংশ নেয়। এসময় বক্তব্য রাখেন, এইডের প্রতিবন্ধী শিশু পুনর্বাসন কর্মসূচীর সহকারী পরিচালক সুরাইয়া পারভীন, একতা উন্নয়ন সংগঠনের নির্বাহী পরিচালক সুমন পারভেজ, এইডের এনামুল কবির, অভিভাবক মুক্তা কুন্ডু, শিল্পী অধিকারী। ইশারা ভাষায় উপস্থাপনা করেন মাকছুদা আক্তার। পরে প্রেসক্লাব মিলনায়তনে সংবাদ সম্মেলনের আয়োজন করা হয়। এসময় বক্তারা, ২০১৩ সালের প্রতিবন্ধী অধিকার ও সুরক্ষা আইনের বাস্তবায়ন ও ধর্ষণের শিকার বাক ও শ্রবণ প্রতিবন্ধী নারী ও শিশুদের আইনগত সহায়তার ক্ষেত্রে ইশারা ভাষার ব্যবহার নিশ্চিতের দাবী জানান।

হালসা হাই স্কুল পরিচালনা কমিটির নির্বাচন

সদস্য পদে ভোট প্রার্থনা করে রফিকুল ইসলাম বাবুর গনসংযোগ

মিলন আলী ॥ কুষ্টিয়ার মিরপুর উপজেলার ঐতিহ্যবাহী হালসা হাই স্কুল পরিচালনা কমিটির সদস্য পদপ্রার্থী রফিকুল ইসলাম বাবু ভোট প্রার্থনা করে গনসংযোগ করে চলেছেন।  তিনি বিদ্যালয়ের প্রতিষ্ঠাতার অন্যতম সদস্য, সাবেক চেয়ারম্যান মরহুম মফিজ উদ্দীন বিশ্বাসের বড় ছেলে, ইউনিয়ন আ’লীগের যুগ্ম সাধারন সম্পাদক ও সাবেক পরিচালনা কমিটির সদস্য। বাবু বলেন- অভিভাবক সদস্য নির্বাচিত হয়ে সকল শিক্ষকদের সাথে নিয়ে এলাকার বিদ্যাজনে মতামত নিয়ে, সকল অভিভাবকদের সহযোগিতায় আধুনিক যুগ উপযোগি বিদ্যাপিঠ হিসাবে জেলার স্বনামধন্য হালসা হাই স্কুলকে গড়তে চাই।

দুর্গাপুজা উপলক্ষে আলমডাঙ্গা পৌরসভার প্রস্ততিমুলক সভা

আলমডাঙ্গা অফিস ॥ আসন্ন শারদীয় দুর্গাপুজা উপলক্ষে আইন শৃঙ্খলা, মন্দিরের সার্বিক দিক নিয়ে পৌর সভার প্রস্ততিমুলক সভা অনুষ্ঠিত হয়েছে। গতকাল রবিবার বেলা ১১ টারদিকে পৌর মেয়রের অফিস কক্ষে সভায় সভাপতিত্ব করেন পৌর সভার প্যানেল মেয়র জহুরুল ইসলাম স্বপন। প্রধান অতিথি ছিলেন পৌর মেয়র ও উপজেলা আওয়ামীলীগের সভাপতি আলহাজ্ব হাসান কাদীর গনু। তিনি বলেন সাম্প্রদায়িক সম্প্রীতিতে বিশ্বাস করি, আলমডাঙ্গা যুগ যুগ ধরে হিন্দু, মুসলিম কাঁধে কাঁধ মিলিয়ে বসবাস করে আসছি। এই দেশে আমরা যার যার ধর্ম সেই সেই পালন করে।  ধর্ম যার যার উৎসব সবার। আপনাদের কাছে অনুরোধ যে কোন সমস্যা হলে আমাকে জানাবেন। সভায় বিশেষ অতিথি ছিলেন প্রেসক্লাবের সভাপতি খন্দকার শাহ আলম মন্টু, সম্পাদক বীর মুক্তিযোদ্ধা হামিদুল ইসলাম, পৌর সচিব রাকিবুল ইসলাম, উপজেলা পুজা উদযাপন কমিটির সভাপতি ডাঃ অমল কুমার বিশ্বাস, জেলা হিন্দু বৌদ্ধ খ্রিষ্টান ঐক্যপরিষদের যুগ্ম সম্পাদক প্রশান্ত অধিকারি, উপজেলা হিন্দু বৌদ্ধ খ্রিষ্টান ঐক্যপরিষদের সভাপতি বীর মুক্তিযোদ্ধা মনীন্দ্রনাথ দত্ত, শুশিল কুমার ভৌতিকা। পৌরসভার কর্মকর্তা হাফিজুর রহমানের উপস্থাপনায় বক্তব্য রাখেন পৌর কাউন্সিলর কাজী আলী আসগার সাচ্চু, মামুনর রশিদ হাসান, ফারুক হোসেন, জাইদুল ইসলাম, কল্পনা খাতুন, নুরজাহান বেগম, পরিমল কুমার কালু ঘোষ, বিশ্বজিৎ শাধু খা, নয়ন সরকার, পলাশ আচার্য, জয় বিশ্বাস, আকা বাবু, বিজয় শিহি, উদয় শংকর, সুনীল গরাই, লিপন কুমার বিশ্বাস, রতন কুমার, দীলিপ চৌধুরি, উজ্জল দাস, বিপ্লব, বিষু অধিকারি প্রমুখ। মেয়র পৌরসভায় ১১টি ও পৌরসভা সংলগ্ন কালিদাশপুর মন্দির কমিটিকে পুজা উদযাপনের জন্য ১০ হাজার করে টাকা প্রদান করার ঘোষনা দেন। এ ছাড়াও প্রতিবছরের ন্যায় এবারও সরকারি সহায়তা অব্যাহত থাকবে।

অন্যায়কারীকে আইনের মুখোমুখি হতেই হবে – স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী

ঢাকা অফিস ॥ স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী আসাদুজ্জামান খান বলেছেন, আমাদের প্রধানমন্ত্রী আজকে দেশকে যে অবস্থানে নিয়ে গেছেন, তা ধরে রাখতে আমাদেরকে অবশ্যই সুশাসন প্রতিষ্ঠা করতে হবে। অন্যায়কারী জনপ্রতিনিধি বা কর্মচারী হোক তাকে আইনের মুখোমুখি হতেই হবে। রোববার সকালে গাজীপুরের কালিয়াকৈর উপজেলার সফিপুরে আনসার ও ভিডিপি একাডেমিতে ৩৫ ও ৩৬ তম বিসিএস (আনসার) কর্মকর্তাদের মৌলিক প্রশিক্ষণ ও এমএইচএস কোর্স সমাপনী কুচকাওয়াজ অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথি হিসেবে যোগ দিয়ে সাংবাদিকদের প্রশ্নের জবাবে এসব কথা বলেন তিনি। স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী আরো বলেন, চলমান অভিযান শুধুমাত্র ক্যাসিনোর বিরুদ্ধে নয়। যারা দেশের আইন অমান্য করে, আইনের বিরুদ্ধে কাজ করে তাদের সকলের বিরুদ্ধে এই অভিযান। যারা অনৈতিক ব্যবসা করে তাদের বিরুদ্ধে আইনি ব্যবস্থা নেয়া হচ্ছে। এসময় স্বরাষ্ট্র মন্ত্রণালয়ের সিনিয়র সচিব মোস্তফা কামাল উদ্দিন, আনসার ও গ্রাম প্রতিরক্ষা বাহিনীর মহাপরিচালক মেজর জেনারেল কাজী শরীফ কায়কোবাদ, অতিরিক্ত মহাপরিচালক বিগ্রেডিয়ার জেনারেল একেএম আসিফ ইকবাল, উপমহাপরিচালক নিমাই কুমার দাস উপস্থিত ছিলেন। ১৫ মাস মেয়াদী মৌলিক প্রশিক্ষণ ও এমএইচএস কোর্সে ৩২ জন বিসিএস আনসার কর্মকর্তা অংশ নেন। এর আগে প্রধান অতিথি বাহিনীর প্রধানকে সঙ্গে নিয়ে খোলা জিপে প্যারেড পরিদর্শন করেন এবং প্রশিক্ষণার্থীদের অভিবাদন গ্রহণ করেন। পরে স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী তিনজন কৃতি প্রশিক্ষণার্থীর মধ্যে ক্রেস্ট প্রদান করেন। এতে রবিউল ইসলাম শ্রেষ্ঠ ড্রিল, কাওসার জাহান শ্রেষ্ঠ ফায়ারার এবং আমিনুল ইসলাম চৌকস প্রশিক্ষণার্থী কর্মকর্তা হিসেবে পুরস্কার অর্জন করেন।

 

সরকার জনগণের তথ্য অধিকার নিশ্চিত করেছে – তথ্যমন্ত্রী

ঢাকা অফিস ॥ তথ্যমন্ত্রী ড. হাছান মাহমুদ বলেছেন, প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার সরকার জনগণের তথ্য অধিকার নিশ্চিত করেছে। তিনি বলেন, শেখ হাসিনার নেতৃত্বাধীন সরকারের সময়ে বাংলাদেশে গণমাধ্যমের ব্যাপক প্রসার ঘটেছে। ২০০৯ সালে সংসদের প্রথম অধিবেশনে তথ্য অধিকার আইন পাস হয়েছে। তিনি আজ শাহবাগে বিসিএস প্রশাসন একাডেমির সামনে এক সমাবেশে এ কথা বলেন। আন্তর্জাতিক তথ্য অধিকার দিবস পালন উপলক্ষে তথ্য কমিশন এই সমাবেশের আয়োজন করে। এর আগে একটি র‌্যালী বের করা হয়। র‌্যালিটি নগরীর বিভিন্ন সড়ক প্রদক্ষিন করে। তথ্যমন্ত্রী বলেন, ২০০৯ সালে শেখ হাসিনা সরকার গঠনের পর মিডিয়া সেক্টরে একটি বিপ্লব ঘটে গেছে। সরকার ৪৫ টি প্রাইভেট টিভি চ্যানেলের লাইসেন্স দিয়েছে। এর মধ্যে ৩৩ টি টিভি ইতোমধ্যেই সম্প্রচারে গিয়েছে। এ ছাড়া বিপুল সংখ্যক অনলাইন নিউজপোর্টাল চালু হয়েছে। তিনি বলেন, আমরা জনগণের তথ্য অধিকার এবং গণমাধ্যমের স্বাধীনতা নিশ্চিত করতে কাজ করে যাচ্ছি। তিনি বলেন, তথ্য অধিকার আইনে প্রায় এক লাখ আবেদনের নিষ্পত্তি করা হয়েছে। বাংলাদেশে গণমাধ্যম স্বাধীন ভবে কাজ করছে। প্রধান তথ্য কমিশনার মুরতজা আহমদ এবং তথ্য কমিশনার সুরাইয়া বেগম ও তথ্য মন্ত্রনালয়ের অতিরিক্ত সচিব মিজানুল আলম সমাবেশে অন্যান্যের মধ্যে বক্তব্য রাখেন।

থলের বিড়াল বেরিয়ে আসায় অভিযান থমকে গেছে – রিজভী

ঢাকা অফিস ॥ বিএনপির সিনিয়র যুগ্ম মহাসচিব অ্যাডভোকেট রুহুল কবির রিজভী বলেছেন, বর্তমান সরকার জনগণের মধ্যে ইলিউশন তৈরি করার জন্য গত ১৮ সেপ্টেম্বর ক্যাসিনো, জুয়া এবং মাদকবিরোধী কথিত শুদ্ধি অভিযান শুরু করেছিল। ৬-৭ জনকে ধরার পর থলের বিড়াল বেরিয়ে আসার কারণে সেই লোক দেখানো অভিযান থমকে গেছে। আওয়ামী লীগ-যুবলীগের মাঝারী নেতাদের ঘরে অবৈধ টাকার সিন্দুক, ভল্ট, টাকশাল, কাড়িকাড়ি টাকা, সোনা-দানার খনি আবিষ্কার হওয়ার পর বড় নেতারা সঙ্কিত হয়ে পড়েছেন। রোববার দলের নয়া পল্টন কার্যালয়ে এক সংবাদ সম্মেলনে রিজভী এ সব কথা বলেন। রিজভী বলেন, চারদিক থেকে যখন রাঘব বোয়ালদের বিরুদ্ধে অভিযানের দাবি জোরালো হচ্ছে তখনই থামিয়ে দেয়া হয়েছে অভিযান। রাঘব বোয়াল ও দুর্নীতির রথি মহারথীদের সুতোর টানে এগুতে পারছে না অভিযান। সরকারের নেতারা বলছেন, সুশাসনের আমেজ দিতেই নাকি ক্যাসিনো বিরোধী অভিযান। হাস্যকর এই চমক আর আমেজ চোখে আঙ্গুল দিয়ে দেখিয়ে দিলো চুনোপুটিদের অফিস বাড়িতে সিন্দুকে শত শত কোটি টাকার স্টক। সহজেই অনুধাবন করা যাচ্ছে- রাঘব বোয়ালদের কাছে রয়েছে লুট হওয়া লক্ষ কোটি টাকা। গতকাল খুলনায় ওয়ার্কার্স পার্টির সভাপতি ও সমাজকল্যাণ মন্ত্রণালয়ের সংসদীয় স্থায়ী কমিটির সভাপতি কমরেড রাশেদ খান মেনন এমপি বলেছেন, ‘বর্তমান সরকারের আমলে গত ১০ বছরে দেশের ৯ লাখ কোটি টাকা বিদেশে পাচার করা হয়েছে।’সরকার দেশকে হরিলুটের নরকপূরী বানিয়েছে। টেলিভিশনের খবরে বলা হচ্ছে ক্যাসিনোর চেয়েও বড় দুর্নীতি হয় পরিবহন সেক্টরে- কেবল রাজধানীতেই প্রতিদিন ১০/১২ কোটি টাকার চাঁদা ওঠে। অথচ শাজাহান খানরা ধরাছোয়ার বাইরে। তাই দুর্নীতি, মাদক, জুয়া ও কালোটাকার মালিকদের বিরুদ্ধে কম্বিং অপারেশন চালাতে চাইলে বিনাভোটের অবৈধ দুর্নীতিবাজ সরকারকে মাথায় বসিয়ে রেখে সম্ভব নয়। তিনি বলেন, আওয়ামী লীগ নিজেদের রাজনৈতিক চরিত্র হারিয়ে জনবিচ্ছিন্ন হয়ে পড়েছে। তাদেরকে এখন নানারকম মিথ্যাচার এবং ছলচাতুরির আশ্রয় নিতে হচ্ছে। দুর্নীতি বিরোধী কথিত অভিযানে সরকারের দুর্নীতির নগ্ন চেহারাই উম্মোচিত হয়নি, এই সরকার নিজেদের দলীয় স্বার্থে আইনশৃঙ্খলাবাহিনীকে ‘কতটা অথর্ব অপদার্থ প্রতিষ্ঠানে’ পরিণত করেছে তারও নির্লজ্জ প্রমাণ মিলেছে। দেশের প্রতিটি মানুষ বিশ্বাস করে ক্যাসিনো কেলেঙ্কারির শুরু থেকে শেষ পর্যন্ত কোনো কিছুই আইনশৃঙ্খলা বাহিনীর অজানা ছিল না। কিন্তু আইনশৃঙ্খলা বাহিনী নিজেদেরকে সরকারের দলীয় বাহিনী হিসেবে পরিণত করায় এতদিন তারা কাসানোতে অভিযান চালাতে সাহস করেনি। প্রধানমন্ত্রী দুর্নীতির বিরুদ্ধে যথাযত ব্যবস্থা না নেয়ায় বাংলাদেশ থেকে ৬ লাখ কোটি টাকার বেশি পাচার হয়ে গেছে, দেশের ব্যাংকগুলো খালি হয়েছে আর বেড়েছে সুইস ব্যাংকে বাংলাদেশিদের জমা রাখা টাকার পরিমাণ। ঋণখেলাপির পরিমাণ বেড়ে এখন ১ লাখ ১০ হাজার ৮৭৪ কোটি টাকা। অথচ রাষ্ট্রায়ত্ত সোনালী, জনতা, অগ্রণী, রূপালী, বেসিক ব্যাংকসহ ১১ টি ব্যাঙ্ক এখন মূলধন সংকটে। রিজভী বলেন, ক্যাসিনো কেলেঙ্কারিকে ঘিরে আওয়ামী লীগ কি কারণে আমাদের ইতিহাসের দুইজন অবিসংবাদিত নেতা শেখ মুজিবুর রহমান এবং জিয়ার রহমানকে মুখোমুখি করার অপপ্রয়াস সত্যিই দুঃখজনক। আওয়ামী লীগের দাবি, শেখ মুজিবুর রহমান দেশে মদ জুয়া নিষিদ্ধ করেছেন। আর জিয়াউর রহমান দেশে মদ জুয়া আইনসিদ্ধ করেছেন। এটি একটি ডাহা মিথ্যা কথা। বাংলাদেশে এখন পর্যন্ত ক্যাসিনো সংক্রান্ত কোনো আইন নেই। তিনি আরো বলেন, সরকার যদি মনে করে, দুর্নীতির জন্য অন্যদল থেকে আওয়ামী লিগে যাওয়া লোকজন দায়ী তাহলে সরকারের উচিত একসপ্তাহের মধ্যে সেসব দুর্নীতিবাজদেরকে তাদের দল থেকে জরুরি ভিত্তিতে খুঁজে বের করা। দুর্নীতির জন্য ইয়ংমেন্স ক্লাবের আড়ালে ফকিরাপুলের ক্যাসিনো কেলেঙ্কারির জন্য শুধু খালেদ দায়ী কিন্তু নিশিরাতের সরকারের সঙ্গী হওয়ায় ক্লাবের গভর্নিং বডির চেয়ারম্যান দায়ী হবে না, এমন একচোখা নীতি হলে দুর্নীতি কমবে না বরং বাড়বে। সত্যি সত্যি দুর্নীতিবাজে ধরতে চাইলে, চুনোপুটি নয়, দুর্নীতির সম্রাটদের ধরুন, তাদের রক্ষক রাজা-রানী বাদশাহদের ধরুন।

আলমডাঙ্গা ওপেন হাউজ ডে অনুষ্ঠিত

আলমডাঙ্গা অফিস ॥ আলমডাঙ্গা থানা পুলিশের উদ্যোগে ওপেন হাউজ ডে অনুষ্ঠিত হয়েছে। গতকাল রবিবার বিকাল ৩টার দিকে মাধ্যমিক বালিকা বিদ্যালয় হলরুমে ওপেন হাউজ ডের অনুষ্ঠানে সভাপতিত্ব করেন আলমডাঙ্গা থানা অফিসার ইনচার্জ আসাদুজ্জামান। প্রধান অতিথি ছিলেন চুয়াডাঙ্গা অতিরিক্ত পুলিশ সুপার কলিমুল্লাহ। তিনি বলেন ওপেন হাউজ ডে মানে আপনাদের সাথে পুলিশের খোলামেলা আলোচনা, আপনারা বলবেন আমরা শুনব, আমাদের কোন পুলিশ সদস্যের বিরুদ্ধে যদি কারো অভিযোগ থাকে ওপেন বলতে পারেন। এ ছাড়াও সমাজের নানা অনিয়ম, মাদক, সন্ত্রাস, ইভটিজিং বিষয়ে যদি মতামত থাকে সেটার বিষয়ে খোলামেলা আলোচনা করতে চাই। মনে রাখবেন পুলিশের দৃষ্টি ভঙ্গি বদলেছে, সেই মানধাত্ত্বা আমলের পুলিশ আর এখন কার পুলিশ এক নয়। আমরা সার্বক্ষনিকভাবে আপনাদের সেবা দিতে প্রস্তুত। সবাই যখন দরজা বন্ধ করে ঘুমান তখন পুলিশ জনগনের জানমাল রক্ষার্থে রাত জেগে ডিউটি করে। আপনাদের সেবা করে, তারপরও পুলিশের বিরুদ্ধে দুর্নিতির ব্যাপক অভিযোগ। অথচ দেশের সবচাইতে দুঃসময়ে বিশেষ করে ১৯৭১ এর মুক্তিযুদ্ধেও পুলিশ ব্যাপক ভুমিকা রেখেছে। অনুষ্ঠানে বিশেষ অতিথি ছিলেন আলমডাঙ্গা উপজেলার ভারপ্রাপ্ত চেয়ারম্যান  খন্দকার সালমুন আহম্মেদ ডন, উপজেলা নির্বাহী অফিসার মোঃ লিটন আলী, মহিলা ভাইস চেয়ারম্যান কাজী মারজাহান নিতু, পৌর মেয়র ও উপজেলা আওয়ামীলীগের সভাপতি হাসান কাদীর গনু, সাবেক পৌর কমান্ডার হাজী শেখ নুর মহাম্মদ জকু, উপজেলা আওয়ামীলীগের সম্পাদক ইয়াকুব আলী মাষ্টার, জেলা ইউপি চেয়ারম্যান সমিতির সভাপতি নুরুল ইসলাম, সম্পাদক এ্যাডঃ আব্দুল মালেক, সাবেক উপজেলা চেয়ারম্যান বীর মুক্তিযোদ্ধা হেলাল উদ্দিন, সাবেক ওসি বীর মুক্তিযোদ্ধা ইসমাইল হোসেন, সরকারি কলেজের ভারপ্রাপ্ত অধ্যক্ষ গোলাম সরোয়ার, বালিকা বিদ্যালয়ের প্রধান শিক্ষক মনিরুজ্জামান, প্রেসক্লাবের সম্পাদক বীর মুক্তিযোদ্ধা হামিদুল ইসলাম আজম, ইউপি চেয়ারম্যান সমিতির সভাপতি কাউছার আহম্মেদ বাবলু, সম্পাদক নুরুল ইসলাম নুরু, উপজেলা আওয়ামীলীগের সহ-সভাপতি বিশিষ্ট শিক্ষানুরাগি আলহাজ্ব লিয়াকত আলী লিপু মোল্লা, আমিরুল ইসলাম মন্টু, পৌর আওয়ামীলীগের সভাপতি আবু মুছা। ওসি তদন্ত গাজী সাহিনের উপস্থাপনায় অন্যদের মধ্যে বক্তব্য রাখেন ইউপি চেয়ারম্যান আব্দুল হালিম মন্ডল, বিআর ডিবি চেয়ারম্যান মহিদুল ইসলাম মুহিদ, পৌর আওয়ামীলীগ নেতা রেজাউল হক তবা, পৌর কাউন্সিলর মতিয়ার রহমান ফারুক, জহুরুল ইসলাম, ইউপি চেয়ারম্যান আবু সাইদ পিন্টু, লুৎফর রহমান, সাবেক কমান্ডার বীর মুক্তিযোদ্ধা সৌমেন্দ্র নাথ,বীর মুক্তিযোদ্ধা মনীন্দ্র নাথ দত্ত,পরিমল কুমার কালু,সুশিল কুমার ভৌতিকা, জেলা পরিষদ সদস্য আসাবুল হক ঠান্ডু, ইউপি চেয়ারম্যান আবুল কালাম আজাদ, মাসুদ পারভেজ, নুরুল ইসলাম, মোস্তাফিজুর রহমান রুন্নু, হাজী ঠান্ডু রহমান, জালাল উদ্দিন প্রমুখ।

 

হালসা হাইস্কুল পরিচালনা কমিটির নির্বাচন

সাধারন সদস্য পদে লিপির ভোট প্রার্থনা

মিলন আলী ॥ কুষ্টিয়ার মিরপুর উপজেলার হালসা হাইস্কুলের পরিচালনা কমিটির নির্বাচনে সাধারন অভিভাবক সদস্যের প্রার্থী হয়ে ভোট প্রার্থনা করছে ৮নং প্রতীকের আ’লীগের নেত্রী বীর মুক্তিযোদ্ধা আব্দুল হান্নানের মেয়ে মোছা লিপি খাতুন। নারী শিক্ষার মান বৃদ্ধির জন্য নিরন্তন ভাবে কাজ করতে চাই নারীর সমাজে অগ্রপথিক লিপি খাতুন।

পাটিকাবাড়ী ২ ও ৩নং ওয়ার্ড আওয়ামীলীগের ত্রি-বার্ষিক সম্মেলন অনুষ্ঠিত

নিজ সংবাদ ॥ কুষ্টিয়া সদর উপজেলার পাটিকাবাড়ী ইউনিয়নের ২ ও ৩নং ওয়ার্ড আওয়ামী লীগের ত্রি-বার্ষিক সম্মেলন অনুষ্ঠিত হয়েছে। গতকাল রবিবার বিকেলে পাটিকাবাড়ী ইউনিয়নের ডাবিরাভিটা ২নং ওয়ার্ড আওয়ামী লীগের সভাপতি তাছের আলীর সভাপতিত্বে ডাবিরাভিটা স্কুল মাঠে অনুষ্ঠিত ত্রি-বার্ষিক সম্মেলন অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথি ছিলেন কুষ্টিয়া জেলা আওয়ামী লীগের সদস্য ও উপজেলা আওয়ামী লীগের আইন বিষয়ক সম্পাদক এ্যাড. জিহাদুল ইসলাম ৷ ত্রি-বার্ষিক সম্মেলন অনুষ্ঠানে বিশেষ অতিথির বক্তব্য রাখেন পাটিকাবাড়ী ইউনিয়ন আওয়ামী লীগের সভাপতি সাইদুর রহমান বিশ্বাস, সাধারণ সম্পাদক ও ইউপি  চেয়ারম্যান সফর উদ্দিন, সাবেক চেয়ারম্যান আব্দুল হামিদ কাজল, জেলা ছাত্রলীগের সাধারণ সম্পাদক সাদ আহমেদ, ইউনিয়ন আ’লীগের ধর্ম বিষয়ক সম্পাদক মাহফুজুর রহমান উজ্জল, ইউনিয়ন যুবলীগের সভাপতি নাসির উদ্দিন বিশ্বাস, সাধারণ সম্পাদক শাখাওয়াত হোসেন, স্বেচ্ছাসেবক লীগের সভাপতি লিটন খান ৷ পরে খেজুরতলা ৩নং ওয়ার্ড আওয়ামী লীগের সভাপতি আব্দুল মজিদের সভাপতিত্বে জাকজমকপূর্ণ পরিবেশে ওয়াপদা মাঠে ত্রি-বার্ষিক সম্মেলন অনুষ্ঠিত হয় ৷ এ সময় উপস্থিত ছিলেন ৩নং ওয়ার্ড আ’লীগের সাধারণ সম্পাদক বীর মুক্তিযোদ্ধা জাফর উল্লাহ খান, ইউপি সদস্য ইব্রাহিম খান, আ’লীগ নেতা আব্দুল মালেক, সরওয়ার  হোসেন, আব্দুস ছাত্তার, মুজাম আলী মেম্বর, ওমর আলী, হাসান আলী, নাসির উদ্দিন, খাদেম আলী, আসাদ আলী, ইসমাইল হোসেন প্রাঃ, আব্দুল মালেক প্রাঃ, ডাঃ ইকতিয়ার উদ্দিন, ইউনিয়ন সেচ্ছাসেবক লীগের সভাপতি লিটন খান, যুবলীগ নেতা আজমল খান, শফিকুল ইসলাম শফি, জেলা ছাত্রলীগের সাবেক সহ-সভাপতি সোহেল ইকবাল হেলাল সহ এলাকার গন্যমান্য ব্যাক্তিবর্গ৷ উভয় স্থানেই প্রথম অধিবেশন  শেষে পূর্বের কমিটিকে বিলুপ্ত ঘোষণা করা হয় এবং একাধীক প্যানেল লিষ্ট জমা হওয়ার ফলে সমঝোতায় আসতে না পারায় দলীয় সিদ্ধান্ত মোতাবেক কমিটি ঘোষণা ছাড়াই অধিবেশন শেষ করা হয় ৷ ২নং ওয়ার্ডের অনুষ্ঠানটি পরিচালনা করেন জেলা ছাত্রলীগের সাবেক সহ-সভাপতি হাসিবুল ইসলাম সুইট এবং ৩নং ওয়ার্ডের অনুষ্ঠানটি পরিচালনা করেন ইউনিয়ন আওয়ামী লীগের সাংগঠনিক সম্পাদক কাবিল হোসেন ৷

 

ঝিনাইদহে দীর্ঘদিন পরে বিএনপির স্থায়ী কার্যালয় উদ্বোধন

ঝিনাইদহ প্রতিনিধি ॥ বিএনপির কেন্দ্রীয় কমিটির সহ-সভাপতি নিতাই রায় চৌধুরী বলেছেন দেশের গণতন্ত্র ফিরিয়ে আনতে হলে আন্দোলন সংগ্রামের মধ্যদিয়ে বেগম খালেদা জিয়াকে মুক্ত করতে হবে। গতকাল রোববার দুপুরে ঝিনাইদহ জেলা বিএনপির কার্যালয় উদ্বোধন শেষে আলোচনা সভায় প্রধান অতিথির বক্তব্যে তিনি একথা বলেন। তিনি আরও বলেন, বেগম খালেদা জিয়াকে কারাগারে রেখে বাংলাদেশের স্বাধীনতা, সার্বভৌমত্ব, গণতন্ত্র সবকিছুতেই স্বৈরাচারী ফ্যাসিস্ট সরকার নির্বাচিত হয়েছে। দেশ এখন চলছে দুঃসময়ের মধ্য দিয়ে। ঝিনাইদহ জেলা বিএনপির আহবায়ক এসএম মশিয়ূর রহমানের সভাপতিত্বে অনুষ্ঠিত উদ্বোধনী সভায় নিতাই রায় চৌধুরী ছাড়াও উপস্থিত ছিলেন, বিএনপি চেয়ারপার্সনের উপদেষ্টা মশিউর রহামান, বিএনপির খুলনা বিভাগীয় সাংগঠনিক সম্পাদক নজরুল ইসলাম মঞ্জু, সহ-সাংগঠনিক সম্পাদক অনিন্দ্য ইসলাম, সহ-সাংগঠনিক সম্পাদক জয়ন্ত কুমার কুন্ডু, কেন্দ্রীয় বিএনপির আন্তর্জাতিক বিষয়ক সম্পাদক আমিরুজ্জামান খান শিমুল, জেলা বিএনপির সদস্য সচিব এ্যাড. এম এ মজিদ, যুগ্ম আহ্বায়ক কামাল আজাদ পান্নু, আব্দুল মালেক, মীর ফজলে লাভলু, আব্দুল মজিদ বিশ্বাস, জাহিদুজ্জামান মনাসহ বিএনপি ও অঙ্গসংগঠনের নেতাকর্মীরা। আলোচনা সভার আগে ফিতা ও কেক কেটে কার্যালয়ের উদ্বোধন করেন অতিথিবৃন্দ।

কুষ্টিয়ায় শায়েখে চরমোনাই মুফতি সৈয়দ মুহাম্মাদ ফয়জুল করীম

সৈয়দ ফজলুল করীম (রহ.) আল্লাহদ্রোহী শক্তির কাছে কখনো মাথানত করেননি

ইসলামী আন্দোলন বাংলাদেশ এর সিনিয়র নায়েবে আমীর শায়েখে চরমোনাই মুফতি সৈয়দ মুহাম্মাদ ফয়জুল করীম বলেছেন, চরমোনাই মরহুম পীর মাওলানা সৈয়দ ফজলুল করীম (রহ.) আদর্শিক লড়াইয়ে উত্তীর্ণ ছিলেন। তিনি আল্লাহদ্রোহী শক্তির কাছে কখনো মাথা নত করেননি। প্রচলিত রাজনীতির পরিবর্তে আদর্শিক পরিবর্তনের লক্ষ্য নিয়ে তিনি কাজ করেছেন। তিনি একজন আদর্শবাদী নেতাও ছিলেন। গতকাল রবিবার দুপুরে ফজলুল করীম (রহ.) ফাউন্ডেশন কুষ্টিয়া জেলা শাখার আয়োজনে শহরের ফজলুল উলুম মাদ্রাসায় চরমোনাই মরহুম পীর মাওলানা সৈয়দ ফজলুল করিম (রহঃ) এর জীবন ও কর্ম শীর্ষক আলোচনা সভায় প্রধান অতিথির বক্ত্যবে তিনি এসব কথা বলেন। তিনি আরো বলেন, মানুষের আত্মিক পরিশুদ্ধির পাশাপাশি জাতীয় স্বার্থে তিনি রীতিমত রাজনীতিক ছিলেন। সত্য উচ্চারণে কখনও ক্ষমতা, কারাদন্ডের ভয় কিংবা পদ ও অর্থের প্রলোভনে প্রভাবিত হননি। দেশ ও জাতির  যেকোনো সংকটে তিনি গুরুত্বপূর্ণ ভূমিকা পালন করতেন। তিনি আরো বলেন, একজন মনিষীর জন্য যেসকল গুনাবলী প্রয়োজন, তাঁর মাঝে তা পূর্ণ মাত্রায় ছিল। তিনি বলে গেছেন, শুধু নেতা নয় নীতির পরিবর্তন চাই। বীর মুক্তিযোদ্ধা আলহাজ্ব আহাম্মাদ আলীর সভাপতিত্বে ও মুফতি  মোজাম্মেল হকের পরিচালনায় আলোচনা সভায় আরো বক্তব্য রাখেন ইসলামী যুব আন্দোলন কেন্দ্রীয় পরামর্শ পরিষদের সদস্য মাওলানা আবু বকর ছিদ্দিক, বাংলাদেশ কুরআন শিক্ষা বোর্ডের কেন্দ্রীয় যুগ্ম মহাসচিব মাওলানা আব্দুর রাজ্জাক, ইসলামী আন্দোলন কুষ্টিয়া জেলার সহ সভাপতি আলহাজ্ব আব্দুল্লাহ আখন্দ, সেক্রেটারী আলহাজ্ব এনামুল হক, প্রশিক্ষন সম্পাদক মুফতি বেলাল হুসাইন, সহ প্রশিক্ষন সম্পাদক মুফতি ফরিদ উদ্দিন আবরার, বামুক কুষ্টিয়া জেলার সভাপতি মাওলানা নূর  মোহাম্মাদ বিন হানিফ, ইসলামী যুব আন্দোলন কুষ্টিয়া জেলার সভাপতি ওমর ফারুক, ইশা ছাত্র আন্দোলন কুষ্টিয়া জেলার সভাপতি ছাত্রনেতা আনোয়ারুল করীম  বিপ্লব প্রমূখ। সংবাদ বিজ্ঞপ্তি

কুষ্টিয়ায় বরাদ্দ প্রাপ্ত প্লট পাওয়ার দাবিতে মানববন্ধন

নিজ সংবাদ ॥ কুষ্টিয়ায় জাতীয় গৃহায়ন কর্তৃপক্ষ কর্তৃক বরাদ্দপ্রাপ্ত প্লট মালিকরা প্লট বুঝিয়া পাওয়ার দাবিতে মানববন্ধন করেছে। গতকাল রবিবার বেলা ১২টায় হাউজিং এলাকায় জাতীয় গৃহায়ন কর্তৃপক্ষের কার্যালয়ের সামনে এই কর্মসূচী পালিত হয়। যথারীতি প্রক্রিয়ায় প্রাপ্ত প্লটের সমুদয় টাকা পরিশোধ করে রেজিষ্ট্রি দলিল মূলে তার নাম পত্তনসহ হালনাগাদ  ভূমি কর পরিশোধ করেও প্রাপ্ত প্লটের দখল পাচ্ছেন না বলে তাদের অভিযোগ। প্লটপ্রাপ্ত বীর মুক্তিযোদ্ধা আব্দুল হাকিম বলেন, জামানতের টাকাসহ আবেদন করার পর গৃহায়ন কর্তৃপক্ষের লটারিতে ৪র্থ প্রকল্পের একটি প্লট গত বছর আমি পায়। শর্তানুযায়ী কিস্তিসহ সমুদয় টাকা পরিশোধ করলে কর্তৃপক্ষ রেজিষ্ট্রি দলিল করে দেন। ইতোমধ্যে নিজ নামে নাম পত্তনসহ হালনাগাদ খাজনাও পরিশোধ করেছি। সারা জীবনের সঞ্চিত টাকায় কেনা এই জমিতে একটু মাথা গোঁজার ঠায় করতে প্লটটি বুঝিয়ে দেয়ার জন্য অফিসে ঘুরে ঘুরে পায়ের তলা ক্ষয় হয়ে গেলো। এখনও প্লট পাচ্ছিনা।

বেগম নুরুন্নাহার বলেন, নিজের গয়না, বাড়ির গরু/ছাগল বিক্রী করে এবং উচ্চহারের সুদে ঋণ নিয়ে প্রাপ্ত প্লটের টাকা শোধ করেও জমি পাচ্ছি না গত এক বছর ধরে। কে বা কারা নাকি আমার বি-৭০নং প্লটের জমিতে নির্মাণ কাজ করছে। আমি এখন একুল-ওকুল হারিয়ে পথের ফকির। জাতীয় গৃহায়ণ কর্তৃপক্ষ কুষ্টিয়ার উপ-বিভাগীয় প্রকৌশলী সৈয়দ আমিনুল ইসলাম জানালেন, মহামান্য হাইকোর্টের স্থগিতাদেশ থাকার পরও হঠাৎ করে জেলা পরিষদের লোকজন ২১২টি বরাদ্দ দেয়া প্লটের জমিতে বিধি লংঘন ও জবর দখল করে অবকাঠামো নির্মান শুরু করায়  প্লট গ্রাহকদের প্লট বুঝিয়ে দেয়া যাচ্ছে না। বিষয়টি সংশ্লিষ্ট সদর দপ্তরে উর্দ্ধতন কর্তৃপক্ষকে অবহিত করা হয়েছে।

দৌলতপুরে গাঁজাসহ মাদক ব্যবসায়ী গ্রেফতার

দৌলতপুর প্রতিনিধি ॥ কুষ্টিয়ার দৌলতপুরে গাঁজাসহ মজনু (৩০) নামে এক মাদক ব্যবসায়ীকে গ্রেফতার পুলিশ। শনিবার রাত সোয়া ১০টার দিকে উপজেলার চক দৌলতপুর পাগলাপাড়া গ্রামে মাদক ব্যবসায়ী মজনুর বাড়িতে অভিযান চালিয়ে ২০০ গ্রাম গাঁজাসহ তাকে গ্রেফতার করা হয়। সে একই গ্রামের ময়নাল শেখের ছেলে। দৌলতপুর থানার ওসি এস এম আরিফুর রহমানের নিদের্শ দৌলতপুর থানা পুলিশ এ অভিযান পরিচালিত করে। অপরদিকে প্রাগপুর বিজিবি বিওপি’র টহল দল একইদিন রাত সাড়ে ১০টার দিকে প্রাগপুর পশ্চিমপাড়া মাঠে অভিযান চালিয়ে মালিক বিহীন ১২ বোতল ভারতীয় জেডি মদ উদ্ধার করেছে।

ভেড়ামারায় মা’কে বাড়ি থেকে বের করে দেয়ার অপরাধে পুত্রের কারাদন্ড

আল-মাহাদী ॥ বৃদ্ধ বয়সে যখন সন্তানের সঙ্গ সবচেয়ে বেশী প্রয়োজন,  সেই সময় বাবা-মাকে পরিত্যাগ করা বা তাঁদের ওপর অত্যাচার করার মতো ঘটনা যেন বর্তমানে সামাজিক ব্যাধিতে পরিণত হয়েছে। কুষ্টিয়ার ভেড়ামারা উপজেলার চাঁদগ্রামে ইউনিয়নের ২নং ওয়ার্ডের লালুর মোড়ে তেমনি এক হৃদয়বিদারক ঘটনা ঘটেছে গত শনিবার রাতে। মেয়ের বাড়ি থেকে গত শনিবার বিকেলে  ছেলের বাড়িতে যান মা। কিন্তু ছেলে তাঁকে ঘরে ঢুকতে  দেননি, বাড়ি থেকে বের করে দেন। প্রতিবেশীরা বিষয়টি সমাধানের চেষ্টা করেও হন ব্যর্থ। এমনকি স্থানীয় ইউনিয়ন পরিষদ (ইউপি) সদস্য গিয়েও মাকে ওই বাড়িতে রাখার বিষয়ে ছেলেকে রাজি করাতে পারেননি। বিষয়টি ভেড়ামারা উপজেলা নির্বাহী অফিসার সোহেল মারুফের কাছে আসে রাত সাড়ে ৮টায়। রাত  সোয়া ৯টায় ভ্রাম্যমাণ আদালতে সাজা হিসেবে ছেলেকে দেওয়া হয় দুই মাসের বিনাশ্রম কারাদন্ড। কারান্ডপ্রাপ্ত ব্যক্তির নাম মো. মজনু (৬০), তিনি চাঁদগ্রামে ইউনিয়নের ২নং ওয়ার্ডের লালুর মোড় এলাকার মৃত রহমান প্রামানিকের এর পূত্র। তিনি পেশায় একজন কৃষক। এ ব্যাপারে ইউএনও সোহেল মারুফের কাছে জানতে চাইলে তিনি বলেন, বিকাল বেলা মা মেয়ের বাড়ি থেকে ছেলের বাসায় থাকতে চাইলে ছেলে বয়স্ক মাকে বাড়ি থেকে বের করে  দেয়। স্থানীয় ব্যক্তিবর্গ বিষয়টি সমাধানের চেষ্টা করে ব্যর্থ হন। এছাড়া স্থানীয় ইউপি সদস্যকে প্রেরণ করা হলেও ছেলে তার মাকে স্থান দিতে অস্বীকার করে। পরে ভ্রাম্যমাণ আদালতে তাকে সাজা প্রদান করা হয়। তিনি আরোও বলেন, কোন সন্তান এমন অমানুষ হয়ে মাকে বাড়ি থেকে বের করে দিক এটা কোন মতেই কাম্য নয়। বাবা-মা সহ পরিবারের বয়োজ্যেষ্ঠ ব্যক্তিরা প্রতিটি পরিবারে সম্মানের সাথে থাকুন, এ প্রত্যাশা করি।

ছাত্রলীগ নেতা হাসান জামান লালনের মৃত্যু বার্ষিকীতে আতাউর রহমান আতা

হাসান জামান লালনের নেতৃত্বের গুণাবলির জন্য আমাদের মাঝে চির স্মরণীয় হয়ে থাকবে

সুজন কর্মকার ॥ কুষ্টিয়া সদর উপজেলা পরিষদের চেয়ারম্যান ও কুষ্টিয়া শহর আওয়ামীলীগের সাধারণ সম্পাদক আতাউর রহমান আতা বলেছেন, হাসান জামান লালনের দক্ষ নেতৃত্বের গুণাবলির জন্য তিনি আমাদের মাঝে চির স্মরণীয় হয়ে থাকবে। হাসান জামান লালন ছিলেন অমিত সম্ভাবনার তরুন ছাত্র নেতা। তাঁর মধ্যে ছিল দক্ষ নেতৃত্বের গুণাবলি। আর তাই তিনি আমাদের হৃদয়ের মাঝে বেঁচে থাকবেন। গতকাল রবিবার বাদ আছর কুষ্টিয়া জেলা ছাত্রলীগের সাবেক সাধারণ সম্পাদক ও কুষ্টিয়া সরকারি কলেজের ছাত্র সংসদের সাবেক জি.এস. ছাত্র নেতা প্রয়াত হাসান জামান লালনের ২৩তম মৃত্যু বার্ষিকী উপলক্ষ্যে এক স্মৃতি চারণ সভায় আতাউর রহমান আতা এ কথা বলেন। এ সময় উপস্থিত ছিলেন হাসান জামান লালনের মাতা জাহানারা রহিম, হাসান জামান লালনের বড় ভাই দি কুষ্টিয়া চেম্বার অব কমার্স এন্ড ইন্ডাষ্ট্রি’র পরিচালক আখতারুজ্জামান, শহর আওয়ামীলীগের যুগ্ম-সাধারণ সম্পাদক মীর রেজাউল ইসলাম বাবু, সমাজ সেবক আক্তার হোসেন চাঁদ, কুষ্টিয়া নাগরিক পরিষদের সভাপতি সাইফুদ দৌলা তরুন, হাসান জামান লালনের ভাতিজা দি কুষ্টিয়া চেম্বার অব কমার্স এন্ড ইন্ডাষ্ট্রি’র সাবেক পরিচালক রাকিবুজ্জামান সেতু সহ অন্যান্য নেতৃবৃন্দ ও স্থানীয় গণ্যমান্য ব্যাক্তিবর্গ। এর আগে হাসান জামান লালনের মৃত্যু দিবসে বিদেহী আত্মার শান্তি কামনায় পরিবারের পক্ষ থেকে দোয়া প্রার্থনার আয়োজন করা হয়। বিদেহী আত্মার মাগফেরাত কামনায় বাদ আছর আড়–য়াপাড়া ছাখাবী মসজিদে মিলাদ মাহফিলের আয়োজন করা হয়। উক্ত মিলাদ মাহফিলে মরহুমের বিদেহী আত্মার মাগফিরাত কামনার জন্য পৌরবাসী ও শুভানুধ্যায়ীরা উপস্থিত ছিলেন। উল্লেখ্য যে, কুষ্টিয়া শহরের বিশিষ্ট সমাজসেবী ও কুষ্টিয়া পৌর এলাকার মিলপাড়া ওয়ার্ডের সাবেক সফল কমিশনার ও কুষ্টিয়া পৌরসভার সর্বপ্রথম জনগণের ভোটে নির্বাচিত প্রয়াত চেয়ারম্যান ম. আ. রহিম আর মাতা জাহানারা রহিমের চার ছেলে মেয়ের মধ্যে হাসান জামান লালন ছিল সর্বকনিষ্ঠ এবং সকলের খুব প্রিয় ও স্নেহের। রাজনৈতিক মেধা ও মননশীলতার জন্য হাসান জামান লালন ১৯৯২ সালে জেলা ছাত্রলীগের গ্রন্থাগার ও প্রকাশনা সম্পাদকের দায়িত্ব পান। এরপর ১৯৯৩ সালে তিনি কুষ্টিয়া জেলা ছাত্রলীগের সাধারণ সম্পাদক নির্বাচিত হন এবং আমৃত্যু তিনি এ দায়িত্ব পালন করেন। হাসান জামান লালনের জন্ম এবং বেড়ে ওঠা একটি সাংস্কৃতিক পরিমন্ডলের মধ্যে। দূর্ভাগ্য ১৯৯৬ সালে ২৯শে সেপ্টেম্বর এই সম্ভাবনাময় তরুনের জীবন অবসান ঘটে। ভারতে দার্জিলিং এ ভ্রমন করতে গিয়ে টাইগার হিলে এক মর্মান্তিক সড়ক দুর্ঘটনায় তিনি নিহত হন।

দক্ষ ক্রয় ব্যবস্থাপনা কমাবে সরকারি ব্যয় – বিশ্ব ব্যাংক

ঢাকা অফিস ॥ দৃশ্যমান অগ্রগ্রতির পরেও সরকারি ক্রয় ব্যবস্থাপনায় দক্ষতা বাড়িয়ে এবং প্রকল্প বাস্তবায়নের মান উন্নয়নের কেনাকাটায় ব্যয় আরও কমানো সম্ভব বলে মনে করেন বিশ্বব্যাংক আবাসিক প্রতিনিধি মারসি মিয়াং টেম্বন। রোববার রাজধানীর একটি হোটেলে বাংলাদেশের সরকারি ক্রয় ব্যবস্থাপনার মূল্যায়ন নিয়ে এক কর্মশালায় এবিষয়ে তার মতামত তুলে ধরেন। বিশ্ব ব্যাংকের প্রতিনিধি বলেন, সরকারি ক্রয়ে বাংলাদেশের বছরে ব্যয় হয় প্রায় দুই হাজার ৪০০ কোটি ডলার, যা জাতীয় বাজেটের প্রায় ৪৫ শতাংশ। এই ব্যয়ের মাত্র এক শতাংশ অর্থ সাশ্রয় করে চার হাজার প্রাথমিক বিদ্যালয় বা আড়াই হাজার কিলোমিটার গ্রামীণ সড়ক নির্মাণ করা সম্ভব। “কার্যকর ও দক্ষ সরকারি ক্রয় ব্যবস্থার জন্য শক্তিশালী সরকারি প্রতিষ্ঠান গড়ে তোলা প্রয়োজন। বড় বড় প্রকল্পে বিনিয়োগ ও ব্যবস্থাপনার জন্য জোরদার সরকারি বাস্তবায়ন সংস্থা ও দক্ষ ক্রয় কমিটি থাকা দরকার। তার চেয়েও গুরুত্বপূর্ণ- প্রকল্পগুলো বাস্তবায়নে কঠোর নজরদারি কর্তৃপক্ষ।” টেম্বন বলেন, “ক্রয় ব্যবস্থাপনা পরিবেশে উন্নতির জন্য গত একদশকে বাংলাদেশ ধারাবাহিকভাবে প্রচেষ্টা চালিয়েছে। এখন আমরা দৃশ্যমান অগ্রগতি দেখতে পাচ্ছি।” কর্মশালার উদ্বোধনী পর্বে পরিকল্পনা মন্ত্রী এম এ মান্নান বলেন, সরকারি ক্রয় ব্যবস্থাপনায় ক্রেতা-বিক্রেতার মধ্যে যৌক্তিক সমান সুযোগ নিশ্চিতে সরকার চেষ্টা করছে। সেজন্য আধুনিক প্রযুক্তির সহায়তা নেওয়া হচ্ছে। এক্ষেত্রে উদ্যোগী হতে সরকারি কর্মকর্তাদের প্রতি আহ্বান জানিয়ে তিনি বলেন, “নাগরিকদের মধ্যে এ নিয়ে সচেতনতা বাড়াতে হবে। কোনো লুকোচুরির আশ্রয় না নিয়ে খোলামেলা পরিবেশে মন্ত্রণালয়ের সবগুলো কাজ যেন হয়- সরকার সেজন্য সব ধরনের নীতি প্রণয়ন করবে।“ সরকারের বাস্তবায়ন পরীবিক্ষণ ও মূল্যায়ন বিভাগের (আইএমইডি) সচিব আবুল মনসুর মো. ফয়জুল্লাহ বলেন, উন্নয়ন প্রকল্পে সবচেয়ে বড় ভূমিকা থাকে ক্রয় প্রক্রিয়ার। যে কোনো একটি প্রকল্পে ভূমি অধিগ্রহণেই মোটা অংকের টাকা খরচ হয়ে যায়। এর পরের ধাপে খরচ হয় ক্রয় প্রক্রিয়ায়। ক্রয় প্রক্রিয়াকে কীভাবে আরও শক্তিশালী করা যায় সেজন্য কর্মশালায় অংশ নেওয়া কর্মকর্তাদেরকে গঠনমূলক পরামর্শ চান তিনি।

ভাদালিয়ায় ভ্রাম্যমান আদালতে জরিমানা

আমলা অফিস ॥ কুষ্টিয়ার ভাদালিয়া বাজারে আব্দুল্লাহ নামের একজন ব্যবসায়ীকে দুই হাজার টাকা জরিমানা করেছে ভ্রাম্যমান আদালত। গতকাল রবিবার বিকেলে সদর উপজেলার ভাদালিয়া এলাকায় এ অভিযান পরিচালনা করে কুষ্টিয়া জেলা প্রশাসকের কার্যালয়ের সহকারী কমিশনার ও নির্বাহী ম্যাজিষ্ট্রেট মাহেরা নাজনীন। ভ্রাম্যমান আদালত সুত্রে জানা যায়, “পণ্যে পাটজাত মোড়কের বাধ্যতামূলক আইন-২০১০” নিশ্চিতে উক্ত এলাকায় অভিযান চালিয়ে প্লাস্টিকের বস্তায় চাউল, মরিচ, ও ধুনিয়া রাখার অপরাধে আব্দুল্লাহ নামক একজনকে দুই হাজার টাকা অর্থদন্ড প্রদান করেন। এসময় উপস্থিত কুষ্টিয়ার মুখ্য পাট পরিদর্শক সোহরাব উদ্দিন বিশ্বাস উক্ত আইনটি মেনে চলার আহবান জানান এবং জেলাব্যাপি এ অভিযান অব্যহত থাকবে বলেও জানান তিনি।

পানিবন্দী রয়েছে ৩৭ গ্রামের মানুষ

দৌলতপুরে পদ্মা নদীর পানি বৃদ্ধির গতি আবারও বেড়েছে

শরীফুল ইসলাম ॥ কুষ্টিয়ার দৌলতপুরে পদ্মা নদীর পানি বৃদ্ধির গতি আবারও বেড়েছে। দু’দিন পানি বৃদ্ধির গতি কিছুটা কম থাকলেও শনিবার রাত থেকে গতকাল রবিবার পর্যন্ত সে গতি বৃদ্ধি পেয়ে চিলমারী ইউনিয়নের ১৮টি গ্রাম এবং রামকৃষ্ণপুর ইউনিয়নে ১৭টি গ্রাম বন্যা কবলিত হয়ে সব মানুষ পানিবন্দী অবস্থায় রয়েছে। রামকৃষ্ণপুর ইউনিয়নের বাঁকী দু’টি গ্রামও আংশিক বন্যাকবলিত হয়েছে। বন্যাকবলিত পানিবন্দী মানুষের দূর্ভোগ দূর্দশা বেড়েছে। বিশুদ্ধ পানির সংকট দেখা দিয়েছে। গত দু’সপ্তাহ ধরে দুই ইউনিয়নের প্রায় সব মানুষ পানিবন্দী অবস্থায় থাকলেও তাদের সেভাবে ত্রান সহায়তা বা আর্থিক সহায়তা দেওয়া হয়নি। শনিবার দিনভর কুষ্টিয়া-১ দৌলতপুর আসনের সংসদ সদস্য আ, কা, ম সরওয়ার জাহান বাদশা, কুষ্টিয়া জেলা প্রশাসক মো. আসলাম হোসেন ও দৌলতপুর উপজেলা চেয়ারম্যান এ্যাড. এজাজ আহমেদ মামুন বন্যা কবলিত রামকৃষ্ণপুর ও চিলমারী ইউনিয়ন পরিদর্শন করে তাৎক্ষনিকভাবে ২০০ পরিবারের মাঝে ১০ কেজি করে চাল দিলেও তা প্রয়োজনের তুলনায় অপ্রতুল। তবে তারা স্থানীয় ইউপি চেয়ারম্যানদের বন্যার্তদের তালিকা করার নির্দেশ দিয়েছেন। আজ থেকে বন্যার্তদের মাঝে শুকনো খাবার সরবরাহের কথা বলেছেন তারা। রামকৃষ্ণপুর ইউনিয়নের চেয়ারম্যান সিরাজ মন্ডল জানান, গতকাল  থেকে আবারও চরম হারে পানি বৃদ্ধি পাচ্ছে। যে সব এলাকায় পানি প্রবেশ করেনি সেসব এলাকাতেও পানি ঢুকে পড়েছে। বলতে গেলে এখন পুরো রামকৃষ্ণপুর ইউনিয়নই পানিবন্দী হয়ে পড়েছে। চিলমারী ইউপি চেয়ারম্যান সৈয়দ আহমেদ বলেন, পুরো চিলমারী ইউনিয়ন এখন পানিতে টুইটুম্বুর। চিলমারী ইউনিয়নবাসী এখন পানিবন্দী অবস্থায় রয়েছে। অধিকাংশ মানুষের বাড়ি ও ঘর পানিতে থৈ থৈ করছে। বন্যায় অর্থকরী ফসলহানির পর বন্যায় তলিয়ে যাওয়া বাড়ি ঘরের মানুষ চরম কষ্টের মধ্যে রয়েছে। তিনি সরকারের কাছে সবধরণের সহযোগিতার আহ্বান জানিয়েছেন।  পদ্মা নদীতে পানি বৃদ্ধির ফলে উপজেলার রামকৃষ্ণপুর ও চিলমারী ইউনিয়নের ৩৭গ্রামের ১০হাজারেরও বেশী পরিবার পানিবন্দী অবস্থায় থাকলেও তা এখন দ্বিগুনে রূপান্তর হয়েছে। ৫ হাজারেরও বেশী পরিবারের বাড়ি-ঘরের মধ্যে পানি ঢুকে তারা জলমগ্ন অবস্থায় রয়েছেন। উজানের নেমে আসা পানিতে আকষ্মিক বন্যায় চরাঞ্চলের প্রায় ১৫’শ হেক্টর জমির মাসকলাইসহ বিভিন্ন ফসল তলিয়ে গেছে। দেরীতে বন্যার হওয়ার কারণে ব্যাপক ক্ষতির মুখে পড়ার পাশাপাশি চরম দুর্ভোগ দূর্দশার মধ্যে রয়েছেন বন্যাকবলিত অসহায় মানুষ। তাদের সাহায্যে সকলকে এগিয়ে আসার আহ্বান জানিয়েছেন ভূক্তভোগীরা।

এবার বাংলাদেশেও রেনিটিডিন ওষুধ নিষিদ্ধ

ঢাকা অফিস ॥ ক্যান্সার উপাদান থাকার সন্দেহে ভারতের পর এবার বাংলাদেশেও রেনিটিডিন ওষুধের কাঁচামাল আমদানি, উৎপাদন ও বিক্রির ওপর নিষেধাজ্ঞা জারি করা হয়েছে। রোববার এ সিদ্ধান্ত নিয়েছে ওষুধ প্রশাসন অধিদফতর। এর আগে রাজধানীর মহাখালীতে বাংলাদেশ ওষুধ শিল্প সমিতির নেতাদের সঙ্গে বৈঠক করে ওষুধ প্রশাসন অধিদফতর। বৈঠক শেষে ওষুধ প্রশাসন অধিদফতরের মহাপরিচালক মেজর জেনারেল মাহবুবুর রহমান সাংবাদিকদের জানান, দেশের মানুষের স্বাস্থ্যসেবার কথা বিবেচনায় নিয়ে রেনিটিডিন ওষুধের কাঁচামাল আমদানি উৎপাদন ও বিক্রির ওপর সাময়িক নিষেধাজ্ঞা জারি করা হয়েছে। প্রসঙ্গত আন্তর্জাতিক ওষুধ নিয়ন্ত্রক সংস্থা (ইউএস এফডিএ) রেনিটিডিন ওষুধে ‘এন-নাইট্রোসোডিমিথাইলামিন (এনডিএমএ)’ নামক এক উপাদানের অস্তিত্ব খুঁজে পায়। এই উপাদানকে মানুষের দেহে ক্যান্সারের জন্য সম্ভবত দায়ী বলে দাবি করে ইন্টারন্যাশনাল এজেন্সি ফর রিসার্চ অন ক্যান্সার (আইএআরসি)। এনিয়ে সংবাদমাধ্যমে খবর প্রকাশিত হয়। পরে রোববার ওষুধ প্রশাসন অধিদফতর রেনিটিডিন ওষুধের কাঁচামাল আমদানি, উৎপাদন ও বিক্রির ওপর নিষেধাজ্ঞা জারি করেছে।

পেঁয়াজ রফতানি বন্ধ করে দিল ভারত

ঢাকা অফিস ॥ পেঁয়াজের দাম নিজেদের বাজারে নিয়ন্ত্রণ করতে না পেরে এবার পেঁয়াজ রফতানির ওপর নিষেধাজ্ঞা জারি করেছে ভারত। রোববার ভারতের বাণিজ্য মন্ত্রণালয়ের বৈদেশিক বাণিজ্য শাখা এ আদেশ জারি করেছে। ওয়ান ইন্ডিয়ার প্রতিবেদনে বলা হয়, ভারতে ৭০ থেকে ৮০ টাকা কেজি দরে বিক্রি হচ্ছে পেঁয়াজ। পেঁয়াজের দাম নিয়ন্ত্রণ করতে পেঁয়াজের রফতানির ওপর নিষেধাজ্ঞা জারি করে মোদি সরকার। গত কয়েক সপ্তাহ ধরে পেঁয়াজের দাম আকাশ ছোঁয়া হয়েছে। রাজধানী দিল্লি, মুম্বাই, লাক্ষনৌয়ে ৬০ টাকা কেজি দরে বিক্রি হচ্ছে পেঁয়াজ। কলকাতাতেও ৬০ থেকে ৭০ টাকা কেজি দরে বিক্রি হচ্ছে পেঁয়াজ। অন্যদিকে পোর্ট বে¬য়ারে পেঁয়াজের দাম কেজিতে ৮০-৯০ টাকায় বিক্রি হচ্ছে। এমন পরিস্থিতি সামাল দিতে দিল্লির মুখ্যমন্ত্রী অরবিন্দ কেজরিওয়াল কম দামে সরকারিভাবে পেঁয়াজ বিক্রির ঘোষণা করেছেন। শুক্রবার কেজরিওয়াল জানান, রাজ্য সরকার ২৩.৯০ টাকা কেজি দরে পেঁয়াজ বিক্রি করবে। সেই অনুযায়ী শহরের বিভিন্ন স্থানে মোবাইল ভ্যানে করে সরকারি উদ্যোগে পেঁয়াজ বিক্রি শুরু হয়েছিল। কিন্তু দেশের বাকি অংশের পেঁয়াজের দাম হাতের নাগালের বাইরে চলে যাওয়ায় পরিস্থিতি সামাল দিতে দেশটির বাণিজ্য মন্ত্রণালয় পেঁয়াজের রফতানি বন্ধ করে দিল।

সাংবাদিকদের প্রশ্নের জবাবে সেতুমন্ত্রী ওবায়দুল কাদের

বিএনপি নেতাদের সম্পদের হিসাব ও দুর্নীতির তথ্য প্রমাণ খুঁজে বের করা হবে 

ঢাকা অফিস ॥ আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক এবং সড়ক পরিবহন ও সেতুমন্ত্রী ওবায়দুল কাদের বলেছেন, বিএনপি নেতাদের সম্পদের হিসাব দুর্নীতির তথ্য ও প্রমাণ খুঁজে বের করা হবে। তিনি বলেন, বিএনপি ক্ষমতায় থাকাকালে দলটির নেতা, এমপি-মন্ত্রীরা যে অবৈধ সম্পদ বানিয়েছে, তার দুর্নীতির তথ্যও বের করা হবে। মন্ত্রী গতকাল রোববার বেলা পৌনে ১২টায় রাজধানীর বিমানবন্দর সড়কের শহীদ রমিজ উদ্দিন ক্যান্টনমেন্ট স্কুল এন্ড কলেজের সামনে আন্ডারপাস নির্মাণ প্রকল্পের কাজের অগ্রগতি পরিদর্শন শেষে এক প্রেসব্রিফিংয়ে এ কথা বলেন । সেনাবাহিনী আন্তর্জাতিক মান বজায় রেখে প্রকল্পের কাজ করছে উল্লেখ করে কাদের বলেন, কাজ নির্ধারিত সময়ের ৬ মাস আগেই চলতি বছরের ডিসেম্বরে শেষ হবে। বর্তমানে কাজের অগ্রগতি ৭০ শতাংশ সম্পন্ন হয়েছে। এটি চালু করা হলে জনগণ উপকৃত হবে বলেও জানান তিনি। তিনি বলেন, ‘নিরাপদ সড়ক পরিবহন আইন সংশোধনের বিষয়টি ¯্রফে গুজব। আইন সংশোধনের বিষয়ে মন্ত্রণালয় এবিষয়ে কিছুই জানে না এবং কোন ধরনের উদ্যোগ নেওয়া হয়নি। অথচ দেখলাম এ বিষয় নিয়ে টিআইবি উদ্বেগ প্রকাশ করেছে। আমরা বিষয়টি খতিয়ে দেখবো। প্রয়োজন হলে ব্যবস্থা নিব।’ ঢাকা মহানগর দক্ষিণ যুবলীগের এক নেতাকে নিয়ে সাংবাদিকদের এক প্রশ্নের জবাবে সেতুমন্ত্রী বলেন, এ বিষয়ে স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী যে বক্তব্য দিয়েছেন, সেটি যথাযথ। এ বিষয়ে তিনিই বলার অধিকার রাখেন।

নিরাপদ সড়কের বিষয়ে গঠিত টাস্কফোর্সের কাজ শিগগিরই শুরু হবে জানিয়ে ওবায়দুল কাদের বলেন, টাস্কফোর্সের কাজ এখনো শুরু করা হয়নি। স্বরাষ্ট্রমন্ত্রীও কমিটিতে রয়েছেন, খুব শিগগিরই কমিটি কাজ শুরু হবে। প্রকল্প সংশ্লিরা জানিয়েছেন, রাজধানীর বিমানবন্দর সড়কের শহীদ রমিজ উদ্দিন ক্যান্টনমেন্ট কলেজের সামনে আন্ডারপাস নির্মাণ প্রকল্পের কাজের অগ্রগতি ৭০ শতাংশ সম্পন্ন হয়েছে। আন্ডারপাস নির্মাণের সময় ধরা হয়েছিল ২০২০ সালের জুন মাস। কিন্তু ২০১৯ সালের ডিসেম্বর মাসেই সেনাবাহিনী প্রকল্পের কাজ শেষ করবে। ৫৭ কোটি টাকা ব্যয়ে এ আন্ডারপাস নির্মাণ কর হচ্ছে। বাংলাদেশে প্রথম পুশ ব্যাক পদ্ধতিতে এ আন্ডারপাস নির্মাণ করা হচ্ছে। বাংলাদেশ সেনাবাহিনীর ২৪ ইঞ্জিনিয়ার কনস্ট্রাকশন ব্রিগেড ও ২৫ ইঞ্জিনিয়ার কনস্ট্রাকশন ব্যাটালিয়ন এ প্রকল্প বাস্তবায়ন করছে। সংশ্লিষ্টরা আরো জানান, ২০১৮ সালের ২৯ জুলাই শহীদ রমিজ উদ্দিন ক্যান্টনমেন্ট কলেজের দুই শিক্ষার্থী নিহত হলে এখানে আন্ডারপাস নির্মাণের নির্দেশ দেন প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা। গত বছরের ২০ নভেম্বর এ প্রকল্পের নির্মাণ কাজ শুরু হয়। এসময় অন্যান্যদের মধ্যে উপস্থিত ছিলেন-বাংলাদেশ সেনাবাহিনী ইঞ্জিনিয়ার ইন চীফ মেজর জেনারেল ইবনে ফজল সায়েখুজ্জামান, ২৪ ইঞ্জিনিয়ার কনস্ট্রাকশন ব্রিগেড এর ভারপ্রাপ্ত মহাপরিচালক কর্নেল এস, এম আনোয়ার হোসেন, রমিজউদ্দিন আন্ডারপাস প্রকল্প কর্তকর্তা মেজর আব্দুল্লাহ আল মামুন বিল্লাহসহ সওজ, সড়ক বিভাগ প্রকল্প সংল্লিষ্ট কর্মকর্তা।