কাশ্মিরে সেনাবাহিনীর গুলিতে নিহত ৬

ঢাকা অফিস ॥ ভারতের সংবিধানের ৩৭০ অনুচ্ছেদ বাতিলের পর থেকেই কাশ্মিরের পরিস্থিতি খারাপ হতে শুরু করেছে। পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রণে কারফিউ জারি রয়েছে এবং অতিরিক্ত সেনা মোতায়েন করা হয়েছে। এর মধ্যেই বিভিন্ন স্থানে বিক্ষোভ করছেন ক্ষুব্ধ কাশ্মিরিরা। বিক্ষোভকারীদের ছত্রভঙ্গ করতে ফাকা গুলি ছুড়েছে ভারতীয় সেনাবাহিনী। এতে কমপক্ষে ছয়জন নিহত হয়েছে। আহত হয়েছে আরো শতাধিক মানুষ। পাকিস্তানের গণমাধ্যম জিও নিউজসহ বেশ কিছু গণমাধ্যমে বুধবার কাশ্মিরে হতাহতের খবর জানানো হয়। নাম প্রকাশ না করা শর্তে এক পুলিশ কর্মকর্তা এএফপিকে জানিয়েছেন, পুলিশের ধাওয়া খেয়ে এক যুবক ঝেলাম নদীতে ঝাঁপ দিয়ে মারা গেছেন। গণমাধ্যমের খবরে বলা হয়েছে, বিভিন্ন শহরে বিক্ষোভকারীদের ওপর ভারতীয় সেনাবাহিনী বুলেট, টিয়ারগ্যাস এবং গোলাবারুদ নিক্ষেপ করেছে। এর মধ্যে রয়েছে শ্রীনগর, পুলওয়ামা এবং বারামুলা। পুলিশ এবং স্থানীয় বাসিন্দাদের বরাত দিয়ে বিবিসি এবং রয়টার্স জানিয়েছে, কাশ্মিরিরা এখন আতঙ্কের মধ্যে রয়েছেন। নিউ ইয়র্কের প্রকাশিত সম্পাদকীয়তে কাশ্মিরকে বর্তমানে ‘বিশ্বের সবচেয়ে বিপজ্জনক স্থান’ হিসেবে উলে¬খ করা হয়েছে। ভারতের সংবিধানের ৩৭০ অনুচ্ছেদ অনুযায়ী, প্রায় সাত দশক ধরে বিশেষ মর্যাদা পেয়ে আসছিল কাশ্মির। কিন্তু হঠাৎ করেই গত সোমবার কাশ্মিরের ওপর থেকে বিশেষ মর্যাদা তুলে নেয় ভারত। তারপর থেকেই থমথমে পরিস্থিতি বিরাজ করছে সেখানে। বিভিন্ন স্থানে বিক্ষোভ ও সংঘর্ষের ঘটনা ঘটছে। সেখানকার সব ধরনের যোগাযোগ বন্ধ থাকায় গত কয়েকদিন ধরেই কাশ্মিরের বাইরে থাকা লোকজন তাদের পরিবারের সঙ্গে কোনভাবেই যোগাযোগ করতে পারছে না। কাশ্মিরের ভেতরে যারা আছেন তারাও অন্যদের সঙ্গে যোগাযোগ করতে পারছেন না। কেউ দিনের বেলা গাড়ি নিয়ে বের হলে সেনারা আটকাচ্ছে। রাতের দিকে পাহারা কম থাকে। সে কারণে লোকজন রাত ১০টার পর বাইরে যাচ্ছেন। ৩৭০ অনুচ্ছেদ বাতিলের প্রতিবাদ হচ্ছে, লোকজন বিক্ষোভ করছে। সেনারাও পাল্টা কাঁদানে গ্যাস ছুড়ছে। তবে শহরের হাসপাতাল সংলগ্ন ওষুধের দোকানগুলো খোলা আছে। নার্সিংহোম, হাসপাতালে গেলে চিকিৎসা হচ্ছে ঠিকই, কিন্তু সেখানে যাওয়ার কোন উপায় নেই। যাদের গাড়ি নেই, তাদের কেউ অসুস্থ হলে কিভাবে হাসপাতালে নেবে? কারণ অ্যাম্বুল্যান্স ডাকাতো সম্ভব হচ্ছে না কারণ সব ফোনের সংযোগই তো বন্ধ। কোথাও আগুন লাগলেও একই অবস্থা হবে। তিনদিন পর সেখানে টিভির সম্প্রচার চালু হয়েছে। টানা তিনদিন ধরে কাশ্মিরে সবকিছু বন্ধ। বাজার খোলা নেই, এটিএম বুথও বন্ধ। কেউ চাইলেও ঘর থেকে বের হতে পারছে না, কারো সঙ্গে যোগাযোগও করতে পারছে না। কার্যত বিশ্ব  থেকে পুরোপুরি বিচ্ছিন্ন হয়ে পড়েছে এই ভূস্বর্গ।এভাবে সব কিছু বন্ধ থাকলে দরিদ্র লোকজন তীব্র খাদ্য সংকটে পড়বেন বলে আশঙ্কা করা হচ্ছে। স্থানীয় বাসিন্দারা জানিয়েছেন, গত কয়েকদিনের এমন পরিস্থিতির কারণে খাবার এবং অর্থ সংকটের মধ্যে পড়েছেন কাশ্মিরের মানুষ। অনেকের ঘরেই খাবার মজুদ নেই। আবার যাদের ব্যাংকে টাকা আছে তারাও এটিএম বুথগুলো বন্ধ থাকার কারণে টাকা তুলতে পারছেন না। চলমান অস্থিরতার মধ্যেই রোববার রাতে ভারত শাসিত জম্মু-কাশ্মিরের সাবেক দুই মুখ্যমন্ত্রী ওমর আবদুল¬াহ এবং মেহবুবা মুফতিকে গৃহবন্দি করা হয়। এর ২৪ ঘণ্টা না পেরোতেই তাদের দু’জনকে গ্রেপ্তার করা হয়। এরপর থেকেই একের পর এক নেতা, উপদেষ্টা, রাজনীতিবিদকে গ্রেফতার করা হয়।

রেলের উন্নয়নে ভারতের সহযোগিতা চাইলেন রেলমন্ত্রী

ঢাকা অফিস ॥ রেলপথ মন্ত্রী নূরুল ইসলাম সুজন ‘ভারতের লাইন অব ক্রেডিট কার্যক্রমের’ আওতায় বাংলাদেশে চলমান প্রকল্পগুলোর গুনগতমান অনুযায়ী সময়মত বাস্তবায়নে ভারতীয় রেলমন্ত্রীর সহায়তা কামনা করেছেন। তিনি ভারত সফরকালে গত ৬ আগস্ট নয়াদিল্লির রেলভবনে ভারতের রেলপথ, বাণিজ্য ও শিল্প মন্ত্রী পিযুশ গোয়েলের সাথে এক দ্বিপাক্ষিক বৈঠকে এ সহযোগিতা কামনা করেন। এই বৈঠকে আলোচনার ভিত্তিতে বাংলাদেশ ও ভারতের মধ্যে চলমান বিভিন্ন প্রকল্প ও অন্যান্য বিষয়ে সফল বাস্তবায়নের লক্ষ্যে বাংলাদেশ ও ভারতের মধ্যে একটি কার্যপত্র স্বাক্ষরিত হয়।   বৈঠকে ‘ভারতের লাইন অব ক্রেডিটের’ আওতাধীন বিভিন্ন প্রকল্পের পাশাপাশি বাংলাদেশকে দশটি ব্রডগেজ ও দশটি মিটার গেজ লোকোমেটিভ প্রদান, বাংলাদেশ ও ভারতের মধ্যে চলাচলকারী মৈত্রী ও বন্ধন এক্সপ্রেস ট্রেনের ট্রিপ সংখ্যা বাড়ানো, বাংলাদেশ রেলওয়ে ও রেলপথ মন্ত্রণালয়ের কর্মকর্তা, প্রকৌশলীদের প্রশিক্ষণ প্রদান ও দক্ষতা বাড়াতে বাংলাদেশের পক্ষ খেকে ভারতের সহায়তা কামনা করা হয়। এছাড়াও চট্রগ্রামস্থ রেলওয়ে ট্রেনিং একাডেমির কারিকুলাম ও প্রশিক্ষণ পদ্ধতির মান উন্নয়ন, বাংলাদেশ রেলওয়ের সেবার মান উন্নয়নে বিভিন্ন পদক্ষেপ গ্রহণ এবং রেলওয়ের কারখানাগুলোর মান উন্নয়নে ভারত সরকারের সহায়তা চান রেলমন্ত্রী। গতকাল শুক্রবার রেলপথ মন্ত্রণালয়ের এক সংবাদ বিজ্ঞপ্তিতে এ কথা জানানো হয়। ভারতের রেলপথ,বাণিজ্য ও শিল্প মন্ত্রী পিযুশ গোয়েলের আমন্ত্রণে বাংলাদেশের রেলপথ মন্ত্রী ভারতে ৬ দিনের সরকারি সফর শেষে গত বৃহস্পতিবার রাতে ঢাকায় ফিরেছেন বলে এই বিজ্ঞপ্তিতে জানানো হয়। ওই বৈঠকে বাংলদেশ রেলওয়ের সার্বিক অবস্থা সম্পর্কে বিস্তারিত আলোচনা করা হয়। বৈঠকে ভারতের রেলপথ প্রতিমন্ত্রী প্রতিমন্ত্রী শ্রী সুরেশ চান্নাবা পাসা আংগাদি, বাংলাদেশের রেলপথ মন্ত্রণালয় সম্পর্কিত সংসদীয় স্থায়ী কমিটির সদস্য আসাদুজ্জামান নুর ও এইচ এম ইব্রাহিম, রেলপথ মন্ত্রণালয়ের অতিরিক্ত সচিব, রেলওয়ের পশ্চিম অঞ্চলের জিএম,ভারতের রেলপথ মন্ত্রণালয়ের ঊর্ধ্বতন কর্মকর্তাবৃন্দ ও সেদেশের রেলের বিভিন্ন বিভাগের প্রধানগণ উপস্থিত ছিলেন। রেলমন্ত্রী ভারত সফরকালে বাংলাদেশের ৮ সদস্যের প্রতিনিধি দলের নেতৃত্ব দেন। নূরুল ইসলাম সুজন ভারতের রেলমন্ত্রীকে জানান যে, বর্তমান সময়ে বাংলাদেশের প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা ও ভারতের প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদীর নেতৃত্বে ও তৎপরতায় বাংলাদেশ ও ভারতের দ্বিপাক্ষিক সম্পর্ক এক ভিন্ন উচ্চতায় পৌঁছেছে। ভারতের রেলপথ মন্ত্রী বাংলাদেশের রেলপথ মন্ত্রীকে বাংলাদেশ রেলওয়ের সেবার মান উন্নয়নে গৃহীত বিভিন্ন পদক্ষেপ বাস্তবায়নে সম্ভাব্য সকল প্রকার কার্যকর সহযোগিতার আশ্বাস দেন।

মিরপুরে ভিজিএফ’র চাল বিতরণ

আমলা অফিস ॥ কুষ্টিয়ার মিরপুর পৌরসভায় ঈদ-উল-আযাহা উপলক্ষে দুঃস্থদের মধ্যে ভিজিএফ’র চাল বিতরণ করা হয়েছে। গতকাল শুক্রবার সকালে পৌর মেয়র হাজী এনামুল হক এ চাল বিতরণ কার্যক্রমের উদ্বোধন করেন। এ সময়ে উপস্থিত ছিলেন পৌরসভার প্যানেল মেয়র জমির উদ্দিন, কাউন্সিলর জাহিদ হোসেন, আব্দুস সালাম  বিশ্বাস, হালিমা খাতুন, উপ-সহকারী প্রকৌশলী আনায়ারুল ইসলাম, প্রধান সহকারী আসাদুল ইসলাম প্রমুখ। এ সময়ে পৌরসভার ৯টি ওয়ার্ডের ৩ হাজার ৮১ জন বিভিন্ন বয়সের দুঃস্থ নারী-পুরুষকে ১৫ কেজি করে চাল প্রদান করা হয়।

আহতের অভিযোগ পুলিশ ছিল ১’শ গজ দূরে

কুষ্টিয়া-রাজবাড়ী সড়কের খোকসায় বাসে ডাকাতি

খোকসা প্রতিনিধি ॥ কুষ্টিয়া-রাজবাড়ী সড়কের খোকসার শিমুলিয়ায় গাছের গুড়ি ফেলে কয়েকটি বাসে ডাকাতির ঘটনা ঘটেছে। যাত্রীদের অভিযোগ এ সময় পুলিশ ছিল ১’শ গজ দূরে। বাসের যাত্রী ও স্থানীয়রা জানায়, বৃহস্পতিবার দিনগত রাত চারটার দিকে একদল ডাকাত খোকসা ও পাংশার সীমান্তবর্তী খোকসার শিমুলিয়া গ্রামের মধ্যে সড়কের পাশের থেকে দু’টি চারা আম গাছ কেটে সড়কে ফেলে রাখে। এ সময় রাজধানী ঢাকা, দৌলতদিয়া ও অন্যান্য স্থান থেকে ছেড়ে আসা বেশ কয়েকটি যাত্রীবাহী বাস, ট্রাক, মটররসাইকেল ঘটনাস্থলে পৌছায়। ডাকাত দল কয়েকটি বাসের যাত্রীদের নগদ টাকা মোবাইল ফোন ডাকাতি করে নেয়। এ সময় ডাকাতদের হামলায় মাহাবুব আলম নামের এক যাত্রীসহ কমপক্ষে ৩ জন যাত্রী রক্তাক্ত আহত হয়। যাত্রীদের আত্মচিৎকারে এলাকাবাসী এগিয়ে আসে। এক পর্যায়ে ডাকাতরা পালিয়ে যায়। এ ঘটনার ১ থেকে দেড় মিনিটের মধ্যে খোকসা ও পাংশা থানার টহল পুলিশের দু’টিদল ঘটনাস্থলে পৌছায়। যাত্রী ও গ্রামবাসীরা ডাকাতদের আটকাবার জন্য পুলিশকে অনুরোধ করে। কিন্তু দুই থানার পুলিশ যাত্রীদের সহযোগীতা না করে নিজেরা ডাকাতির স্থান নিয়ে বিবাদে জড়িয়ে পরে। ডাকাতদের হামলায় আহত যাত্রী মাহাবুবুল আলম অভিযোগ করেন, খোকসা থানা পুলিশের দলটি ডাকাতির স্থান থেকে  থেকে ১’শ গজ দূরে শিমুলিয়া আদিবাসী পল্লীর ব্রিজের উপর ছিল। ডাকাতরা যাত্রীদের মালামাল নিয়ে পালিয়ে যাওয়ার ১ থেকে দেড় মিনিটের মধ্যে পুলিশ সদস্যরা ঘটনা স্থলে পৌছায় কিন্তু তারা ডাকাতদের আটকানোর উদ্যোগ নেয়নি। উল্টো করে দুই থানা পুলিশ খোকসা ও পাংশা উপজেলার সীমানা নিয়ে বিরোধে জড়িয়ে পরে। খোকসা থানা ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা এবিএম মেহেদী মাসুদ ডাকাতির ঘটনা স্বীকার করেন। তবে তার দাবি ডাকাতির ঘটনাটি ঘটেছে পাংশা থানার মধ্যে। ডাকাতি শুরু হওয়ার কয়েক মিনিটের মধ্যে খোকসা থানা পুলিশের একটি দল ঘটনাস্থলে পৌছায়। তারা পাংশা থানা পুলিশ ঘটনা স্থলে ডেকে নিয়ে আসে। এ ব্যাপারে পাংশার থানা ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা আবুল বাসার মিয়া বলেন, একটি বাসে ডাকাতির ঘটনা ঘটেছে। তবে সেটি ঘটেছে খোকসা উপজেলার মধ্যে। ঘটনাস্থলে পাংশা থানা পুলিশ গিয়েছিল। তিনি নিশ্চিত করে বলেন ডাকাতির ঘটনাটি খোকসা উপজেলার মধ্যে ঘটেছে।

বিশ্ব বাণিজ্য সংস্থার রফতানি প্রবৃদ্ধি সূচকে ২য় স্থানে বাংলাদেশ

ঢাকা অফিস ॥ বিশ্ব বাণিজ্য সংস্থার (ডব্লিউটিও) রফতানি প্রবৃদ্ধির সূচকে দ্বিতীয় অবস্থানে উঠে এসেছে বাংলাদেশ। গত এক দশকে দক্ষিণ এশীয়ার এই প্রথম কোন দেশ তালিকার দ্বিতীয় অবস্থানে আসতে সক্ষম হয়েছে। ডব্লিউটিও পরিসংখ্যাণ পর্যালোচনা ২০১৯, এর তথ্যমতে তালিকার প্রথম অবস্থানে রয়েছে ভিয়েতনাম। তবে বিশ্বের বড় অর্থনীতির দেশ চীন, ভারত, মেক্সিকো, আরব-আমিরাত, তুরস্ক, ব্রাজিলের অবস্থান তালিকার পেছনের দিকে। গত সপ্তাহে প্রকাশিত ডব্লিউটিও পর্যালোচনায় সংস্থাটি উল্লেখ করেছে তালিকার শীর্ষে থাকা ভিয়েতনামের রফতানি প্রবৃদ্ধি ১৪ দশমিক ৬ শতাংশ, যেখানে বাংলাদেশের ৯ দশমিক ৮ শতাংশ,চীনের ৫ দশমিক ৭ এবং ভারতের ৫ দশমিক ৩ শতাংশ। ডব্লিউটিও তথ্যমতে,রফতানি আয়ের দিক দিয়ে বাংলাদেশ এখন বিশ্বের ৪২তম দেশ এবং আমদানিতে ৩০তম অবস্থানে রয়েছে। তৈরি পোশাকই বাংলাদেশের রফতাতির আয়ের এখনও মূল শক্তি, বৈশ্বিক বাজারে যার অংশগ্রহণ দিন দিন বাড়ছে। ২০০০ সালে তৈরি পোশাকের বৈশ্বিক বাজারে বাংলাদেশের অংশগ্রহণ ছিল ২ দশমিক ৫ শতাংশ যা এখন বেড়ে দাঁড়িয়েছে ৬ দশমিক ৫ শতাংশে। তৈরি পোশাকের বিশ্ববাজারে চীনের পরেই বাংলাদেশের অবস্থান। এ ক্ষেত্রে বাংলাদেশ দীর্ঘদিন ধরে দ্বিতীয় অবস্থানে রয়েছে। ভিয়েতনাম পোশাকের বৈশ্বিক বাজারে উদীয়মান শক্তি হিসেবে উঠে এসেছে। ডব্লিউটিও প্রতিবেদনে উল্লেখ করা হয়েছে, ভিয়েতনামের রফতানি প্রবৃদ্ধি মূলত ইলেকট্রিক্যাল পণ্য নির্ভর। ২০০৮ থেকে ২০১৮ সালের মধ্যে ৩০গুন রফতানি আয় বেড়েছে দেশটির। অন্যদিকে বাংলাদেশের রফতানি আয় তৈরি পোশাক খাত নির্ভর। গত বুধবার বাংলাদেশ চলতি ২০১৯-২০ অর্থবছরে ৫৪ বিলিয়ন মার্কিন ডলারের রফতানি লক্ষ্যমাত্রা ঘোষণা করেছে। সেখানেও সিংহভাগ রফতানি আয়ের জন্য পোশাককে বেছে নেয়া হয়েছে।

শেখ হাসিনা ফ্রী স্বাস্থ্য সেবা কেন্দ্র কুষ্টিয়া’র

ডেঙ্গু প্রতিরোধে আব্দালপুরে সচেতনতা মূলক সভা ও ফ্রী মেডিকেল ক্যাম্প

নিজ সংবাদ ॥ শেখ হাসিনা ফ্রী স্বাস্থ্য সেবা কেন্দ্র কুষ্টিয়া’র আয়োজনে, ডেঙ্গু প্রতিরোধে সচেতনতা মূলক আলোচনা সভা ও ফ্রী মেডিকেল ক্যাম্প অনুষ্ঠিত হয়েছে। গতকাল ৯ আগষ্ট শুক্রবার দুপুর থেকে সন্ধ্যা পর্যন্ত কুষ্টিয়া সদর উপজেলার পূর্ব আব্দালপুরে ডেঙ্গু প্রতিরোধে এ সচেতনতা মূলক আলোচনা সভা ও ফ্রী মেডিকেল ক্যাম্প অনুষ্ঠিত হয়। শেখ হাসিনা ফ্রী স্বাস্থ্য সেবা কেন্দ্র কুষ্টিয়া’র প্রতিষ্ঠাতা ডাঃ এ এফ এম আমিনুল হক রতন ছাড়াও এ সচেতনতা মূলক আলোচনা সভা ও ফ্রী মেডিকেল ক্যাম্পে ডাঃ আশিক হক সাগর, ডাঃ সাদিয়া, ডাঃ আরিফুল ইসলাম, ডাঃ জুয়েল সহ এলাকার আব্দুর রসিদ মাষ্টারের ভাই রেজা ও ঐ এলাকার গণ্যমান্য ব্যক্তিবর্গ উপস্থিত ছিলেন। উক্ত ক্যাম্পে শতাধিক রোগীকে বিনামূল্যে ঔষধ সহ চিকিৎসা সেবা প্রদান করা হয়।

কাশ্মীরে ভারতীয় আগ্রাসনের প্রতিবাদে কুষ্টিয়ায় ইসলামী আন্দোলনের বিক্ষোভ মিছিল সমাবেশ

ভারত অধিকৃত জম্মু-কাশ্মীরে ভারতীয় দখলদারদের অব্যাহত জুলুম সাম্প্রতিক অভিযান আগ্রাসন  গনহত্যা ও ৩৭০ ধারা রদ করার প্রতিবাদে কুষ্টিয়ায় বিক্ষোভ প্রদর্শন ও সমাবেশ করেছে ইসলামি আন্দোলন বাংলাদেশ। গতকাল শুক্রবার সকাল সাড়ে ১০টায় শহরের বড় বাজার রেল গেট থেকে এ বিক্ষোভ মিছিলটি শুরু হয়ে শহর প্রদক্ষিন করে শাপলা চত্বরে সংক্ষিপ্ত সমাবেশ করে। সংগঠনের জেলা সভাপতি আলহাজ্ব আহাম্মাদ আলীর সভাপতিত্বে এবং সেক্রেটারী আলহাজ্ব শেখ মু. এনামুল হক এর পরিচালনায় সমাবেশে বক্তব্য রাখেন ইসলামী আন্দোলন কুষ্টিয়া জেলার সহ-সভাপতি আলহাজ্ব আব্দুল্লাহ আখন্দ, সাবেক সহ-সভাপতি আলহাজ্ব নূর মোহাম্মদ বিন হানিফ, সাংগঠনিক সম্পাদক মুফতি মোজাম্মেল হক কাসেমী, শিক্ষা ও সংস্কৃতি বিষয়ক সম্পাদক হাফেজ তাওহীদুল ইসলাম, ইসলামী যুব আন্দোলন কুষ্টিয়া জেলার সভাপতি মু. ওমর ফরুক, ইশা ছাত্র আন্দোলন কুষ্টিয়া জেলার সভাপতি মু. আনোয়ারুল করিম বিপ্লব, মুঃ আব্দুল মোমিন, মু. গোলাম তাওহীদ, মু. নজরুল ইসলাম, মু. জাহিদুল ইসলাম, মু.আরজ আলী, এইচ এম মোজাম্মেল হক, মু. বাদশা মিয়া প্রমুখ।

সমাবেশে বক্তারা বলেন, মোদি সরকার কাশ্মীরী জনগণের ন্যায্য অধিকার কেড়ে নিয়েছে। সংবিধান লঙ্ঘন করে জম্মু-কাশ্মীরে আগ্রাসন চালাচ্ছে। অবৈধভাবে জম্মু-কাশ্মীর দখলের চক্রান্ত করছে মোদী সরকার। বক্তারা আরো বলেন, আমরা জম্মু-কাশ্মীর বাংলাদেশের মাটি থেকে একটি বাক্য উচ্চারণ করতে চাই, ভারতীয় আগ্রাসন সাম্রাজ্য যে যে জায়গায় আছে  সেসব জায়গা থেকে সমূলে উৎপাটন করতে হবে। আপনারা জানেন, ভারতীয় যে আগ্রাসন তা আমাদের দেশেও কতটা প্রকট। আমরা এখান থেকে বলতে চাই, বাংলাদেশের মানুষ ভারতীয় আগ্রাসনের বিরুদ্ধে সবসময় সোচ্চার থাকবে। সংবাদ বিজ্ঞপ্তি।

 

পাকিস্তানে গ্রেপ্তার নওয়াজ শরীফের মেয়ে মরিয়ম নওয়াজ

ঢাকা অফিস ॥ পাকিস্তানের সাবেক প্রধানমন্ত্রী নওয়াজ শরীফের মেয়ে এবং পিএমএল-এন এর ভাইস প্রেসিডেন্ট মরিয়ম নওয়াজকে গ্রেপ্তার করেছে দুর্নীতি-বিরোধী সংস্থা ন্যাশনাল একাউন্ট্যাবিলিটি ব্যুরো (এনএবি)। পাকিস্তান মুসলিম লিগ-নওয়াজের (পিএমএল-এন) মুখপাত্র মারিয়াম আওরঙ্গজেব বৃহস্পতিবার রয়টার্সকে বলেছেন, “মরিয়ম নেওয়াজকে গ্রেপ্তার করা হয়েছে। এনএবি তাকে লাহোর থেকে গ্রেপ্তার করেছে। গ্রেপ্তারের কোনো কারণ আমাদেরকে জানানো হয়নি।” পাকিস্তানের ‘দ্য ডন’ পত্রিকা জানায়, লাহোরে কোট লাখপত জেলের বাইরে মরিয়মকে কাস্টডিতে রেখেছে এনএবি। সেখানে তিনি তার বাবাকে দেখতে গিয়েছিলেন। সাবেক পাক প্রধানমন্ত্রী নওয়াজ এখন লাহোরের জেলে বন্দি। সে কারণে বাবার সঙ্গে জেলেই দেখা করতে গিয়েছিলেন মরিয়ম। সেখানেই তাকে গ্রেপ্তার করা হয়। চৌধুরী সুগার মিল মামলায় এনএবি বৃহস্পতিবার মরিয়মকে ডেকে পাঠিয়েছিল। কিন্তু মরিয়ম এনএবি’র সামনে হাজির না হওয়ায় তাকে গ্রেপ্তার করা হল। সুগার মিলের মাধ্যমে বড় অংকের আর্থিক দুর্নীতিতে জড়িত থাকার অভিযোগে মরিয়মকে গ্রেফতার করা হয়েছে বলে জানিয়েছে এনএবি। যদিও নওয়াজের দলের অভিযোগ, প্রতিহিংসাপরায়ণ হয়েই মরিয়ম নওয়াজকে গ্রেফতার করেছে ইমরান সরকার। ইমরান খানের কট্টর সমালোচক হওয়ার কারণেই মরিয়মকে গ্রেপ্তার করা হয়েছে বলে দাবি অনেকের।

মশার উৎসস্থল ধ্বংসে বছরব্যাপী কর্মসূচি নেওয়ার আহ্বান নাসিমের

ফাকা অফিস ॥ ১৪ দলের সমন্বয়ক ও সাবেক স্বাস্থ্যমন্ত্রী মোহাম্মদ নাসিম বলেছেন, ডেঙ্গু প্রতিরোধে এডিস মশার উৎসস্থল ধ্বংসে ঢাকার দুই সিটি কর্পোরেশনকে বছরব্যাপী কর্মসূচি নিতে হবে। তিনি বলেন, ডেঙ্গু থেকে রক্ষা পেতে মশা নিধনের বিকল্প নেই। নাগরিকদেরও দায়বদ্ধতা রয়েছে। সবাইকে সচেতন হতে হবে, সতর্ক থাকতে হবে। ডেঙ্গু বর্তমানে আতঙ্ক সৃষ্টি করেছে। বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিব মেডিকেল বিশ্ববিদ্যালয়ের কেবিন ব্লকের নিচতলায় গতকাল শুক্রবার বেলা সাড়ে ১১টায় ডেঙ্গু চিকিৎসাসেবা সেল পরিদর্শন শেষে সাংবাদিকদের এসব কথা বলেন মোহাম্মদ নাসিম। আওয়ামী লীগের এ প্রেসিডিয়াম সদস্য বলেন, দেশের হাসপাতালগুলোর চিকিৎসক-নার্সরা, মেডিকেল টেকনোলজিস্ট, ল্যাব টেকনিশিয়ানসহ সংশ্লিষ্টরা রাতদিন সত্যিকার অর্থেই সেবা দিয়ে যাচ্ছেন, পরিশ্রম করে চলছেন। সাপ্তাহিক ছুটির দিনও তারা সেবা দিয়ে যাচ্ছেন। বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিব মেডিকেল বিশ্ববিদ্যালয়ে ডেঙ্গু রোগীদের সর্বোচ্চ মানের সেবা দেয়া হচ্ছে। এ বিশ্ববিদ্যালয়ে ভর্তি হওয়া রোগীরা এখানকার চিকিৎসক, নার্স, ল্যাব টেকনিশিয়ানদের সেবায় সন্তোষ প্রকাশ করেছে। ডেঙ্গু রোগীদের চিকিৎসাসেবায় বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিব মেডিকেল বিশ্ববিদ্যালয় দৃষ্টান্ত স্থাপন করেছে। সাংবাদিকদের এক প্রশ্নের জবাবে বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিব মেডিকেল বিশ্ববিদ্যালয়ের উপাচার্য অধ্যাপক ডা. কনক কান্তি বড়ুয়া বলেন, ‘জ¦র হলেই যথাসময়ে হাসপাতালে এসে চিকিৎসকের পরামর্শ নিন। দেরি করে আসলে রোগীর স্বাস্থ্যঝুঁকি বেড়ে যায়। যারা জ¦রে আক্রান্ত হয়েছেন পরীক্ষা না করিয়ে বাড়ি যাবেন না। পরীক্ষায় ডেঙ্গু ভাইরাস ধরা পড়লে বাড়ি যাবেন না। তবে রক্ত পরীক্ষার পর যাদের ডেঙ্গু ধরা পড়েনি তারা বাড়ি যেতে পারেন। ডেঙ্গুর সার্বিক পরিস্থিতি এখনও স্থিতিশীল। পবিত্র ঈদুল আজহার ঈদের ছুটিতেও বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিব মেডিকেল বিশ্ববিদ্যালয়ে ডেঙ্গু রোগীদের চিকিৎসাসেবা চলমান থাকবে, ইতোমধ্যে সে প্রস্তুতি সম্পন্ন হয়েছে। শুধু তাই নয়, সাধারণ রোগীদের সুবিধার্থে ঈদের পরদিন মঙ্গলবার (১৩ আগস্ট) বিশ্ববিদ্যালয়ের বহির্বিভাগ খোলা রাখা হয়েছে। বুধবার (১৪ আগস্ট) প্রচলিত নিয়মে খোলা থাকবে। তিনি আরও বলেন, প্রত্যেক বছরের ন্যায় এবারও সর্বকালের সর্বশ্রেষ্ঠ বাঙালি জাতির পিতা বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের শাহাদাৎ বার্ষিকীতে আগামি ১৫ আগস্ট সকাল ৯টা থেকে বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিব মেডিকেল বিশ্ববিদ্যালয়ের বহির্বিভাগে মেডিসিন, সার্জারি, শিশু, দন্তসহ সব ধরনের বিশেষজ্ঞ চিকিৎসকরা অর্থাৎ অধ্যাপক, সহযোগী অধ্যাপক, সহকারী অধ্যাপকরা বিনামূল্যে রোগী দেখবেন। ওই দিন ৩০ টাকা মূল্যের টিকেটটিও বিনামূল্যে দেয়া হবে। গতবছর ২০১৮ সালের ১৫ আগস্ট জাতীয় শোক দিবসের দিন ৪৪৮২ রোগী বিনামূল্যে চিকিৎসাসেবা নিয়েছেন। আশা করি, এ বছরও জাতীয় শোক দিবসে প্রায় ৫ হাজার রোগী চিকিৎসাসেবা গ্রহণ করবেন। বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিব মেডিকেল বিশ্ববিদ্যালয়ের ডেঙ্গু সেল পরিদর্শনকালে আরও উপস্থিত ছিলেন- সাম্যবাদী দলের সাধারণ সম্পাদক ও সাবেক শিল্পমন্ত্রী দিলীপ বড়ুয়া, বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিব মেডিকেল বিশ্ববিদ্যালয়ের উপ-উপাচার্য (গবেষণা ও উন্নয়ন) অধ্যাপক ডা. মো. শহীদুল্লাহ সিকদার, উপ-উপাচার্য (প্রশাসন) অধ্যাপক ডা. মুহাম্মদ রফিকুল আলম, সার্জারি অনুষদের ডিন অধ্যাপক ডা. মো. জুলফিকার রহমান খান, রেজিস্ট্রার অধ্যাপক ডা. এ বি এম আবদুল হান্নান, প্রক্টর অধ্যাপক ডা. সৈয়দ মোজাফফর আহমেদ, পরিচালক (হাসপাতাল) ব্রিগেডিয়ার জেনারেল এ কে মাহাবুবুল হক, হেমাটোলজি বিভাগের চেয়ারম্যান অধ্যাপক ডা. মো. আবদুল আজিজ, চিফ এস্টেট কর্মকর্তা ডা. এ কে এম শরীফুল ইসলাম, অতিরিক্ত পরিচালক (হাসপাতাল) অধ্যাপক ডা. নাজমুল করিম মানিক প্রমুখ।

‘ভারতরত পেলেন প্রণব মুখার্জী

ঢাকা অফিস ॥ ভারতরতœ সম্মানে ভূষিত হলেন ভারতের সাবেক রাষ্ট্রপতি প্রণব মুখোপাধ্যায়। বৃহস্পতিবার তাঁর হাতে এই সম্মান তুলে দিলেন ভারতীয় রাষ্ট্রপতি রামনাথ কোবিন্দ। প্রণব মুখোপাধ্যায়কে নিয়ে এই নিয়ে চারজন বাঙালির হাতে উঠল এই সম্মান। বিধানচন্দ্র রায়, সত্যজিৎ রায়, অমর্ত্য সেনের পর চতুর্থ বাঙালি হিসেবে দেশের সর্বোচ্চ বেসামরিক সম্মান পেলেন প্রণব মুখোপাধ্যায়। ভারতীয় রাজনীতির চাণক্য তিনি। ৮৩ বছরের প্রণব মুখোপাধ্যায় তাঁর দীর্ঘ রাজনৈতিক জীবনে দেখেছেন বহু উত্থান-পতন। একা হাতে সামলেছেন বহু গুরুত্বপূর্ণ পদ। রাজনৈতিক জীবনের প্রান্ত সীমায় এসে ২০১২ থেকে ২০১৭ পর্যন্ত দায়িত্ব পালন করেন রাষ্ট্রপতিরও। পাঁচ দশকের বেশি সময় ধরে দেশের জন্যে তাঁর অনন্য অবদানের স্বীকৃতি হিসেবে এবার তাঁকে দেওয়া হয় ভারত রতœ খেতাব। দেশের সর্বোচ্চ নাগরিক সম্মান বৃহস্পতিবারই হাতে পান তিনি। এই সম্মানের জন্যে তাঁকে বেছে নেওয়ায় দেশের মানুষকে আন্তরিক ধন্যবাদ জানিয়েছেন ভারতের প্রাক্তন রাষ্ট্রপতি প্রণব মুখোপাধ্যায়। ২৬ জানুয়ারি সাংবাদিক  বৈঠকে তিনি জানিয়েছিলেন, ‘আমি এই দেশের জনগণের কাছে চিরকৃতজ্ঞ। আন্তরিক ধন্যবাদ জানিয়েছি দেশের রাষ্ট্রপতিকেও।’ প্রণব মুখোপাধ্যায় ছাড়াও এই বিরল সম্মান তুলে দেওয়া হয় প্রয়াত সংগীতশিল্পী ভূপেন হাজারিকা এবং সমাজকর্মী নানাজি দেশমুখের পরিবারের হাতে।

ডেঙ্গু নয়, আ. লীগ নেতাদের মস্তিস্ক পরীক্ষা দরকার – রিজভী

ঢাকা অফিস ॥ দেশ উন্নত হচ্ছে বলেই ডেঙ্গু হচ্ছে, যে দেশ যত বেশি উন্নত হচ্ছে সে দেশে তত বেশি রোগের প্রকোপ বাড়ছে -বলে পল্লী উন্নয়ন ও সমবায় প্রতিমন্ত্রী স্বপন ভট্টাচার্যের বক্তব্যের কড়া সমালোচনা করে বিএনপির সিনিয়র যুগ্ম-মহাসচিব রুহুল কবির রিজভী আহমেদ বলেছেন, আসলে ডেঙ্গু নয়, আওয়ামী লীগের এমপি-মন্ত্রীদের মস্তিস্ক পরীক্ষা করা দরকার। গতকাল শুক্রবার সকাল সাড়ে ১১টায় নয়াপল্টনে বিএনপির কেন্দ্রীয় কার্যালয়ে আয়োজিত সংবাদ সম্মেলনে রিজভী এ কথা বলেন। গত বৃহস্পতিবার গোপালগঞ্জের কোটালীপাড়া উপজেলায় এক সেমিনারে বক্তব্যে ডেঙ্গু নিয়ে স্বপন ভট্টাচার্য্য বলেন, ‘ডেঙ্গু এলিট শ্রেণির একটি মশা। এ মশা সিঙ্গাপুর, ব্যাংকক, কলকাতা শহরে দেখা যাচ্ছে। বাংলাদেশ এখন উন্নত দেশ হতে যাচ্ছে। তাই এখন দেশে ডেঙ্গু এসেছে। মানুষের যত অর্থনৈতিক উন্নয়ন ঘটবে তত নানা রোগে আক্রান্ত হচ্ছে।’ তার এই বক্তব্যের সমালোচনা করে রিজভী বলেন, ‘মন্ত্রীর এহেন বক্তব্যকে ‘টক অব দি সেঞ্চুরি’ বলবো নাকি ‘শক অব দি সেঞ্চুরি’ বলবো, এ নিয়ে দ্বিধায় আছি। মধ্যরাতের নির্বাচন করে আওয়ামী মন্ত্রিসভায় এডিস মশাবিস্তারের মতো গবুচন্দ্র মন্ত্রীদেরও বিস্তার ঘটেছে। দেশব্যাপী যেমন এডিস মশারবিস্তারে কোনো বিরতি দেখা যাচ্ছে না, ঠিক তেমনি নব কলেবরে গবুচন্দ্র মন্ত্রীদেরও হাসি-তামাশা উদ্রেককারী কথাবার্তারও কমতি দেখা যাচ্ছে না। পল্লী উন্নয়ন প্রতিমন্ত্রী কোন ব্যুরো থেকে উল্লিখিত তথ্যসমূহ সংগ্রহ করেছেন তা জানালে দেশবাসীর উপকার হতো। দেশ উন্নত হলে যদি রোগের প্রকোপ বৃদ্ধি পায় তাহলে লন্ডন, নিউইয়র্ক, প্যারিস, কোপেনহেগেন ইত্যাদি উন্নত দেশের শহরগুলোতে ডেঙ্গুতে হাজার হাজার মানুষ প্রাণ হারাতো। এহেন মন্ত্রীদের উদ্ভট বোলচালে জনজীবন ডেঙ্গুর মতোই বিপর্যস্ত। আসলে ডেঙ্গু নয়, আওয়ামী লীগের এমপি-মন্ত্রীদের মস্তিস্ক পরীক্ষা করা দরকার। বিবিসিকে দেওয়া সাক্ষাৎকারে প্রধানমন্ত্রীর বক্তব্যের সমালোচনা করে বিএনপির এই নেতা বলেন, বিবিসির সাক্ষাৎকারে প্রধানমন্ত্রী বলেছিলেন-এডিস নিয়ে মিডিয়ার বাড়াবাড়িতে মানুষের মধ্যে আতঙ্ক তৈরি হয়েছে। মূলত মেয়র থেকে শুরু করে মন্ত্রীরা এমনকি প্রধানমন্ত্রীও ডেঙ্গু আক্রান্ত মানুষের দুঃখ-দুর্দশাসহ বিভিন্ন দুর্যোগে ঠাট্টা মশকরা করছেন। অথচ সারাদেশে হাসপাতালগুলোতে কোনো ঠাঁই নেই। ডেঙ্গু রোগীতে ছেয়ে গেছে সব হাসপাতাল। ঘণ্টার পর ঘণ্টা দাঁড়িয়ে থেকেও রক্ত পরীক্ষা করতে পারছে না রোগীরা। কেউ কেউ অনেক কষ্ট করে রক্ত পরীক্ষা করেও রিপোর্ট পেতে হয়রানির শিকার হচ্ছে। যেদিন রিপোর্ট দেওয়ার কথা বলা হয়, সেদিন রোগীরা রিপোর্ট পান না। পরীক্ষা-নিরীক্ষা ও রিপোর্ট নিয়ে প্রচন্ড দুর্ভোগ পোহাতে হচ্ছে ডেঙ্গু আক্রান্ত রোগীদের পরিবারগুলোকে। আবার হাসপাতালে হাসপাতালে ঘুরেও সঠিক চিকিৎসা না পেয়ে মৃত্যুর কোলে ঢলে পড়ছে অসংখ্য শিশুসহ নানা বয়সী মানুষ। হাসপাতালে বেড না পেয়ে মেঝেতে কাতরাচ্ছে শিশু বাচ্চারা। পরিস্থিতি সামাল দেওয়ার কোনো সক্ষমতা নেই এই সরকারের। উন্নয়নের নামে পকেট ভারী করার জন্যই আজকে ডেঙ্গুর মতো এই দুর্যোগ মোকাবেলায় অক্ষম সরকার। খালেদা জিয়ার শারীরিক অসুস্থতার কথা জানিয়ে রিজভী বলেন, সাবেক প্রধানমন্ত্রী দেশনেত্রী বেগম খালেদা জিয়া এখনও গুরুতর অসুস্থ। বারবার ইনস্যুলিন পরিবর্তন এবং ইনস্যুলিনের মাত্রা বৃদ্ধি করার পরেও কোনো অবস্থাতেই তার সুগার নিয়ন্ত্রণ করা যাচ্ছে না। কোনো কোনো সময় এটি ২৩ মিলিমোল পর্যন্ত উঠে যাচ্ছে। সুগার নিয়ন্ত্রণ করতে গিয়ে খাবারের পরিমাণ অনেক কমিয়ে দেয়াতে শরীরের ওজন অনেক হ্রাস পেয়েছে। যথাযথ চিকিৎসার বিষয়ে বারবার দাবি করা সত্ত্বেও দেশনেত্রীকে উন্নতমানের যন্ত্রপাতি উন্নত দেশের কোনো বিশেষায়িত হাসপাতালে চিকিৎসার ব্যবস্থা করা হয়নি। ব্যাথার কারণে রাতে তার ঘুম হচ্ছে না এবং সারাক্ষণ তিনি অস্থির থাকছেন। দেশনেত্রীর সুস্থ জীবন প্রত্যাশা করছে দেশবাসী। কিন্তু সরকারের নির্মম আচরণে নিরাশ হয়ে পড়েছে তারা। কারাগারে নেয়ার সময় সুস্থ বেগম জিয়াকে এখন হুইল চেয়ারে চলাফেরা করতে হয়। দেশবাসী দেশনেত্রীর জীবনের পরিণতি নিয়ে এখনও অজানা আতঙ্ক ও শঙ্কার মধ্যে রয়েছে। তিনি অভিযোগ করে বলেন, সরকার দেশনেত্রীর জীবন নিয়ে মাস্টারপ্ল্যানে ব্যস্ত। এ মাস্টারপ্ল্যান হচ্ছে-গণতন্ত্রের ধ্বংসস্তুপের ওপর জাতীয়তাবাদী শক্তিকে নির্মূল করে দেশের স্বাধীনতা ও সার্বভৌমত্বকে অন্যের কাছে বিকিয়ে দেয়া। মধ্যরাতের এ সরকার নতুন কাশিমবাজার কুঠি সৃষ্টি করে দেশের মানুষকে পরাধীন করতে এক সর্বনাশা পথে হাঁটছে বলেই গণতন্ত্র ও জাতীয়তাবাদী শক্তির প্রতীক দেশনেত্রী বেগম খালেদা জিয়াকে রোগে-শোকে, ব্যাথা-বেদনায় জর্জরিত রেখে কারাগারে আটকে রেখেছে। তার জামিনে বাধা দেয়া হচ্ছে। আদালতের কথাতেই মনে হচ্ছে যে, প্রধানমন্ত্রীর নির্দেশ ছাড়া কিছু হবে না। তিনি বলেন, দেশনেত্রী বেগম খালেদা জিয়া পরিবারের সদস্যদের মাধ্যমে দেশবাসী এবং বিএনপি অঙ্গ ও সহযোগী সংগঠনের সব পর্যায়ের নেতাকর্মীদেরকে পবিত্র ঈদুল আজহার প্রাণঢালা শুভেচ্ছা জানিয়েছেন। দেশনেত্রী বেগম খালেদা জিয়াকে ঈদুল আজহার পূর্বেই মুক্তি দিতে হবে। সংবাদ সম্মেলনে বিএনপির ভাইস চেয়ারম্যান ডা. এ জেড এম জাহিদ হোসেন, যুগ্ম-মহাসচিব খায়রুল কবির খোকন, সহ-সাংগঠনিক সম্পাদক অ্যাডভোকেট আবদুস সালাম আজাদ প্রমুখ উপস্থিত ছিলেন।

জম্মু-কাশ্মীরে নতুন অধ্যায় শুরু – মোদী

ঢাকা অফিস ॥ “জম্মু-কাশ্মীরে নতুন অধ্যায় শুরু হয়েছে। নাগরিকরা এখন সমান অধিকার পাবে। নতুন সূচনা হচ্ছে লাদাখের অধিকার বঞ্চিত মানুষদের জন্যও। কাশ্মীর নিয়ে ভারত সরকারের বড় ধরনের সিদ্ধান্তের ব্যাখ্যায় জাতির উদ্দেশে ভাষণে নতুন এ ভোরেরই প্রশস্তি গাইলেন প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদী। গত সোমবারই ভারতীয় সংবিধানের ৩৭০ ধারা রদ করে কাশ্মীরের বিশেষ মর্যাদা তুলে নিয়েছে ভারত সরকার। পরিকল্পনা করেছে রাজ্যটিকে ভাগ করে জম্মু-কাশ্মীর এবং লাদাখন্ড দু’টো কেন্দ্রশাসিত অঞ্চল করার। ভারতের পত্রিকা আনন্দবাজার জানায়, বিষয়টি নিয়ে বুধবার সংসদ অধিবেশনের শেষ দিন প্রধানমন্ত্রীর ভাষণ দেওয়ার কথা থাকলেও সাবেক পররাষ্ট্রমন্ত্রী সুষমা স্বরাজের মৃত্যুতে তা আর হয়ে ওঠেনি। সুষমার শেষকৃত্যর পর মোদী বৃহস্পতিবার বিকাল চারটায় ভাষণ দেবেন বলে জল্পনা শোনা গেলেও পরে সংবাদ সংস্থা এএনআই জানিয়েছিল, রাত ৮টায় ভাষণ দেবেন মোদী। সে মতোই টিভি এবং বেতারে জাতির উদ্দেশে এ ভাষণ দিলেন নরেন্দ্র মোদী। তার ভাষণের বিশেষ অংশগুলো তুলে ধরেছে এনডিটিভি: ভাষণে মোদী বলেন, *জম্মু-কাশ্মীরের জনগণ এবং লাদাখের জনগণ অধিকার বঞ্চিত ছিল। *সর্দার বল¬ভভাই প্যাটেল, বিআর আম্বেদকর, শ্যামা প্রসাদ মুখার্জী, অটল বিহারী বাজপেয়ীসহ কোটি কোটি ভারতীয় যে স্বপ্ন দেখেছে তা আজ পূরণ হয়েছে। *জম্মু-কাশ্মীরে শুরু হয়েছে নতুন অধ্যায়। নাগরিকরা এখন সমান অধিকার এবং দায়িত্ব পাবে। আমি ওই অঞ্চলের জনগণ ও নাগরিকদের অভিনন্দন জানাই। * ৩৭০ ধারার কারণে জম্মু-কাশ্মীরের জনগণ এবং শিশুদের ক্ষতি হচ্ছিল। বিষয়টি নিয়ে কখনো আলোচনা হয়নি। * লোকজন এমনকী ৩৭০ ধারার সুবিধাগুলো সম্পর্কেও জানত না। *৩৭০ ধারা এবং ৩৫এ অনুচ্ছেদ জম্মু-কাশ্মীরকে সন্ত্রাস, বংশ পরম্পরায় রাজনীতি এবং দুর্নীতির দিকে ঠেলে দিয়েছে।

কুষ্টিয়ায় বৃক্ষ রোপণে উদ্বুদ্ধকালে আতাউর রহমান আতা

পরবর্তী প্রজন্মকে একটি বসবাস উপযোগী পৃথিবী উপহার দেওয়া আমাদের দায়িত্ব

সুজন কর্মকার ॥ কুষ্টিয়া সদর উপজেলা পরিষদের চেয়ারম্যান ও কুষ্টিয়া শহর আওয়ামীলীগের সাধারণ সম্পাদক আতাউর রহমান আতা বলেছেন, পরবর্তী প্রজন্মকে একটি বসবাস উপযোগী পৃথিবী উপহার দেওয়া আমাদের দায়িত্ব। আর গাছ লাগানো ছাড়া এর কোনো বিকল্প উপায় নেই। তাই প্রত্যোকের বাড়ির আঙ্গিনায় কমপক্ষে একটি করে বনজ, ফলজ ও ওষধি গাছ লাগান, নিজেদের বাড়িকে একেকটি বৃক্ষ খামারে রূপান্তরিত করুন, গড়ে তুলুন অক্সিজেনের ভান্ডার হিসেবে’। কুষ্টিয়া সদর উপজেলা পরিষদের চেয়ারম্যান আতাউর রহমান আতা আরো বলেন, জলবায়ু ও মাটির  গুনে প্রাচীন কাল থেকেই বাংলাদেশ সবুজের সমারহের জন্য সুপ্রসিদ্ধ। আর এ সমারহ শুধুমাত্র গাছের জন্য সংখ্যাধিক্যে সীমাবদ্ধ ছিলনা প্রজাতীর বৈচিত্রও সমৃদ্ধ ছিল। পরিবেশগত  ভারসাম্য রক্ষার্থে একটি দেশে  যে পরিমাণ বনভূমী থাকা প্রয়োজন রয়েছে, আমাদের দেশে সে পরিমাণ বৃক্ষ নেই। সরকারি উদ্যোগ ও বিভিন্ন বেসরকারি পরিবেশবাদী সংগঠনের কার্যক্রমের ফলে এবং ব্যাপক গণসচেতনতা সৃষ্টির কারণে এখন বৃক্ষের সংখ্যা বৃদ্ধি পাচ্ছে। কুষ্টিয়া শহর আওয়ামীলীগের সাধারণ সম্পাদক আতাউর রহমান আতা আরো বলেন, গাছকে বলা হয় অক্সিজেনের ফ্যাক্টরি। মানুষ, গাছ, প্রাণিকুল সব মিলে একটি বায়বীয় গ্যাসীয় সম্পর্ক বিদ্যমান রয়েছে, যার মাধ্যমে একে অপরের উপকারার্থে নিবেদিত। কাজেই পরিবেশ রক্ষায় বৃক্ষরোপণের কোনো বিকল্প নেই। আর সে বৃক্ষরোপণের সবচেয়ে উপযুক্ত সময় হল এ বর্ষাকাল। গতকাল ৯ আগষ্ট শুক্রবার বেলা ১১ টায় বাংলাদেশ আওয়ামীলীগের যুগ্ম-সাধারণ সম্পাদক ও কুষ্টিয়া সদর আসনের সংসদ সদস্য মাহবুবউল আলম হানিফ’র কুষ্টিয়া শহরের পিটিআই রোডস্থ বাস ভবন প্রাঙ্গনে উপস্থিতিদেরকে বৃক্ষরোপণে উদ্বুদ্ধ করে সদর উপজেলা পরিষদের চেয়ারম্যান আতাউর রহমান আতা এসব কথা বলেন।

এ সময় লেখক-কলামিস্ট ও পরিবেশ ব্যাক্তিত্ব গৌতম কুমার রায়, কুষ্টিয়া শহর আওয়ামীলীগের সহ-সভাপতি মানজিয়ার রহমান চঞ্চল, মিনিবাস মালিক সমিতির সাধারণ সম্পাদক মকবুল হোসেন লাবলু, কোষাধ্যক্ষ আমিরুল ইসলাম, আওয়ামীলীগ নেতা ডাঃ আফিল উদ্দিন, জেলা যুবলীগের সাবেক যুগ্ম-আহবায়ক হাবিবুর রহমান হাবি, স্বেচ্ছাসেবক লীগ নেতা জহুরুল হক, কুষ্টিয়া প্রেসক্লাবের নির্বাহী সদস্য সাংবাদিক সুজন কুমার কর্মকার সহ বিভিন্ন পেশার মানুষ উপস্থিত ছিলেন।

কুষ্টিয়া পৌর ঈদগাহ্ েঈদ-উল-আযহা’র জামাত সকাল ৮টায়

কুষ্টিয়া পৌরসভা পরিচালিত ফায়েজুল গোরাবাহ্ ওয়াক্ফিয়াত পৌর ঈদগাহ্ -এ ঈদ-উল-আযহা-২০১৯ এর একমাত্র নামাজের জামাত সকাল ৮টায় অনুষ্ঠিত হবে। গত ৮-৮-২০১৯ তারিখে সন্ধ্যায় ম.আ.রহিম মিলনায়তনে ঈদগাহ্ পরিচালনা কমিটির সভাপতি ও কুষ্টিয়া পৌরসভার পময়র আনোয়ার আলী’র সভাপতিত্বে অনুষ্ঠিত এক সভায় এ সিদ্ধান্ত গৃহীত হয়। ধর্মপ্রাণ মুসল্লীগণকে নিজ নিজ জায়নামাজসহ যথা সময়ে ঈদগাহ্ েউপস্থিত হওয়ার জন্য আহবান জানিয়েছেন মেয়র আনোয়ার আলী। সংবাদ বিজ্ঞপ্তি

কাশ্মীর নিয়ে ভারতকে ‘সতর্ক বার্তা’ দিল জাতিসংঘ!

ঢাকা অফিস ॥ জম্মু-কাশ্মীরের সাংবিধানিক মর্যাদা বাতিলসহ উপত্যকায় সেনা বাড়ানো এবং কাশ্মীরের সাবেক মুখ্যমন্ত্রীদের গৃহবন্দি করা নিয়ে উত্তপ্ত রাজনৈতিক পরিস্থিতির বিষয়ে গভীর উদ্বেগ জানিয়েছে জাতিসংঘ। ভারত সরকারের এমন আচরণ কাশ্মীরের মানবাধিকার পরিস্থিতিকে আরও খারাপের দিকে নিয়ে যাবে বলে সতর্ক করেছে সংস্থাটি। বুধবার টুইটারে প্রকাশিত এক ভিডিও বার্তায় জাতিসংঘের মানবাধিকার কমিশনের মুখপাত্র এ উদ্বেগ প্রকাশ করেন। গত ৮ জুলাই জাতিসংঘের মানবাধিকার কমিশনের এক প্রতিবেদনে তোলা অভিযোগ পুনর্ব্যক্ত করে মুখপাত্র বলেন, সাম্প্রতিক অচলাবস্থা কাশ্মীরের পরিস্থিতিকে নতুন মাত্রায় নিয়ে গেছে। তিনি বলেন, আগের প্রতিবেদনে ভারতীয় কর্তৃপক্ষ কিভাবে ভিন্নমত দমনে যোগাযোগ ব্যবস্থা বিচ্ছিন্ন করে, রাজনৈতিকভাবে ভিন্নমত পোষণকারীদের শাস্তি দিতে নির্বিচারে আটক এবং বিক্ষোভ মোকাবেলায় মাত্রাতিরিক্ত সেনা মোতায়েন করে যা বিচারবহির্ভূত হত্যাকান্ড ও গুরুতর জখম ঘটায় তার বিবরণ রয়েছে। চলতি সপ্তাহে নতুন যে বিধিনিষেধ আরোপ করা হয়েছে তা পরিস্থিতিকে নতুন এক মাত্রায় নিয়ে গেছে বলেও মন্তব্য করেন তিনি। মানবাধিকার কমিশনের মুখপাত্র আরও বলেন, জাতিসংঘ এখন ওই অঞ্চলে ফের টেলিযোগাযোগে বিধিনিষেধ আরোপের বিষয়টি পর্যবেক্ষণ করছে, টেলিযোগাযোগ যেভাবে বন্ধ করা হয়েছে তাতে মনে হচ্ছে হয়তো এর আগে এমন কঠোর নিষেধাজ্ঞা দেখিনি। এ ধরনের নিষেধাজ্ঞা জম্মু ও কাশ্মীরের জনগণকে তাদের অঞ্চলের ভবিষ্যৎ নিয়ে গণতান্ত্রিক বিতর্কে অংশগ্রহণ থেকে বাইরে রাখবে বলে জানান জাতিসংঘের মানবাধিকার কমিশনের মুখপাত্র। প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদির হিন্দুত্ববাদী সরকার কাশ্মীরের বিশেষ মর্যাদা বাতিলের আগে থেকেই কাশ্মীরের ফোন ও ইন্টারনেট সংযোগ সম্পূর্ণ বিচ্ছিন্ন করে দেয়া হয়। এই মুহূর্তে ভারতনিয়ন্ত্রিত জম্মু-কাশ্মীর বিশ্বের সবচেয়ে সামরিকীকৃত এলাকায় পরিণত হয়েছে। সেনাবাহিনী, আধা-সামরিক বাহিনী ও পুলিশ সদস্য মিলিয়ে সেখানে সাত লাখের বেশি নিরাপত্তা বাহিনীর সদস্য মোতায়েন রয়েছে। অস্থায়ী কারাগার বানানো হয়েছে হোটেল, গেস্ট হাউস, সরকারি ও বেসরকারি বিভিন্ন ভবনকে। কাশ্মীরের পুরো উপত্যকাটি যেন পরিণত হয়েছে একটি কারাগারে। কাশ্মীরের প্রভাবশালী দল ন্যাশনাল কনফারেন্সের দুই নেতা সাবেক মুখ্যমন্ত্রী ও আইনপ্রণেতাসহ আটক ও গৃহবন্দি রাজনীতিকের সংখ্যা ৫০০ ছাড়িয়ে গেছে। রোববার রাতেই জম্মু-কাশ্মীরের সাবেক দুই মুখ্যমন্ত্রী ওমর আবদুল¬াহ ও মেহবুবা মুফতিকে গৃহবন্দি এবং পরদিন তাদের গ্রেফতার করা হয়। এরপর থেকেই একের পর এক নেতা, উপদেষ্টা, রাজনীতিককে গ্রেফতার করা হচ্ছে। সূত্র: ডন

চলতি মাসেই চালু হচ্ছে ই-পাসপোর্টের কার্যক্রম

ঢাকা অফিস ॥ এ মাসেই আসছে ই-পাসপোর্ট ইলেকট্রনিক পাসপোর্টের (ই-পাসপোর্ট) কার্যক্রম। ইতিমধ্যে ওই সংক্রান্ত প্রস্তুতি শেষ হয়েছে। এখন প্রধানমন্ত্রী সময় দিলেই পাসপোর্ট তৈরি ও বিতরণ কার্যক্রম উদ্বোধন হবে। ইলেকট্রনিক পাসপোর্টে কাগজপত্রের কোনো সত্যায়নের দরকার হবে না। আর কোনো ভ্যাট ছাড়াই ই-পাসপোর্টের সর্বোচ্চ ফি ধরা হয়েছে ১২ হাজার টাকা আর সর্বনিম্ন সাড়ে ৩ হাজার টাকা। বিদেশে বাংলাদেশ দূতাবাসে সাধারণ আবেদনকারীদের জন্য সর্বোচ্চ ফি ২২৫ ডলার এবং সর্বনিম্ন ফি ১০০ ডলার ধরা হয়েছে। বিদেশে বাংলাদেশ দূতাবাসে শ্রমিক ও শিক্ষার্থীদের জন্য সর্বোচ্চ ফি ২২৫ ডলার এবং সর্বনিম্ন ফি ৩০ ডলার ধরা হয়েছে। স্বরাষ্ট্র মন্ত্রণালয় সংশ্লিষ্ট সূত্রে এসব তথ্য জানা যায়।

সংশ্লিষ্ট সূত্র মতে, ই-পাসপোর্ট নিয়ে জটিলতার অবসান ঘটছে। প্রকল্প বাস্তবায়নকারী জার্মান প্রতিষ্ঠান ভেরিডোসের সঙ্গে ফিঙ্গার প্রিন্ট নিয়ে বিরোধেরও সুরাহা হচ্ছে। আগামী ৮ আগস্ট প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা দেশে ফিরলে তার সঙ্গে আলোচনাক্রমে ঈদের পর নতুন ই-পাসপোর্ট কার্যক্রমের উদ্বোধন করা হবে। সবক্ষেত্রে ই-পাসপোর্ট ৪৮ ও ৬৪ পৃষ্ঠার হবে। সাধারণ, জরুরি ও অতি জরুরি এ তিনভাবে ই-পাসপোর্টের ফি নির্ধারণ করা হয়েছে। পাশাপাশি কাগজপত্র সত্যায়নের ঘর উঠিয়ে দেয়া হয়েছে। ৪৮ পৃষ্ঠার ৬ বছর মেয়াদি সাধারণ ফি ৩৫০০ টাকা, জরুরি ফি ৫৫০০ টাকা ও অতি জরুরি ফি ৭৫০০ টাকা এবং ১০ বছর মেয়াদি সাধারণ ফি ৫০০০ টাকা, জরুরি ফি ৭০০০ টাকা ও অতি জরুরি ফি ৯০০০ টাকা। তাছাড়া বাংলাদেশে আবেদনকারীদের জন্য ৬৪ পৃষ্ঠার ৫ বছর মেয়াদি সাধারণ ফি ৫৫০০ টাকা, জরুরি ফি ৭৫০০ টাকা ও অতি জরুরি ফি ১০৫০০ টাকা এবং ১০ বছর মেয়াদি সাধারণ ফি ৭০০০ টাকা, জরুরি ফি ৯০০০ টাকা ও অতি জরুরি ফি ১২০০০ টাকা। সূত্র জানায়, ই-পাসপোর্টের আবেদনপত্র অনলাইনেই পূরণ করা যাবে। এছাড়া পিডিএফ ফরম্যাট ডাউনলোড করে যে কোনো কম্পিউটারে ফরমটি পূরণ করা যাবে। ই-পাসপোর্টের আবেদনের ক্ষেত্রে কোনো কাগজপত্র সত্যায়ন করার প্রয়োজন হবে না। এছাড়া কোনো ছবি সংযোজন করা এবং তা সত্যায়ন করারও দরকার হবে না। ই-পাসপোর্টের আবেদনপত্র জাতীয় পরিচয়পত্র (এনআইডি) বা জন্মনিবন্ধন সনদ (বিআরসি) অনুযায়ী পূরণ করতে হবে। তবে অপ্রাপ্ত বয়স্ক (১৮ বছরের কম) আবেদনকারী যার জাতীয় পরিচয়পত্র (এনআইডি) নেই, তার পিতা এবং মাতার জাতীয় পরিচয়পত্র (এনআইডি) নম্বর অবশ্যই উল্লেখ করতে হবে। ই-পাসপোর্টে কারো আবেদন ১৮ বছরের নিচে হলে জন্মনিবন্ধন সনদ (বিআরসি), ১৮ বছর হলে জাতীয় পরিচয়পত্র (এনআইডি) বা জন্মনিবন্ধন সনদ (বিআরসি) এবং ১৮ বছরের বেশি হলে জাতীয় পরিচয়পত্র (এনআইডি) অবশ্যই লাগবে। তবে ১৮ বছরের নিচে সব আবেদনকারীর ই-পাসপোর্টের মেয়াদ হবে ৫ বছর।

এদিকে কূটনৈতিক পাসপোর্ট পেতে আবেদনকারীদের পররাষ্ট্র মন্ত্রণালয়ের কনস্যুলার অ্যান্ড ওয়েলফেয়ার উইং বা প্রযোজ্য ক্ষেত্রে বহিরাগমন ও পাসপোর্ট অধিদফতরের (ডিআইপি) প্রধান কার্যালয় বরাবর আবেদন করতে হবে। দেশের অভ্যন্তরে অতি জরুরি পাসপোর্ট রি-ইস্যুর ক্ষেত্রে সর্বোচ্চ ৪৮ ঘণ্টার মধ্যে পাসপোর্ট দেয়া হবে। জরুরি পাসপোর্ট রি-ইস্যুর ক্ষেত্রে সর্বোচ্চ ৭২ ঘণ্টার মধ্যে পাসপোর্ট দেয়া হবে। রেগুলার পাসপোর্ট রি-ইস্যুর ক্ষেত্রে সর্বোচ্চ ৭ কর্মদিবসের মধ্যে পাসপোর্ট দেয়া হবে। নির্ধারিত মেয়াদ শেষ হলে পাসপোর্ট রি-ইস্যুর ক্ষেত্রে কোনো অতিরিক্ত তথ্য সংযোজন বা ছবি পরিবর্তনের প্রয়োজন না হলে ব্যক্তিগতভাবে উপস্থিতির দরকার নেই। অন্যদিকে এ প্রসঙ্গে পাসপোর্ট অধিদফতরের মহাপরিচালক মেজর জেনারেল মো. সোহায়েল হোসেন খান জানান, দীর্ঘ প্রচেষ্টায় আমরা এখন সম্পূর্ণভাবে প্রস্তুত। যে কোনো দিন চালু হবে ই-পাসপোর্ট।

স্কুল জীবনের প্রিয় শিক্ষকের সান্নিধ্যে তথ্যমন্ত্রী

ঢাকা অফিস ॥ স্কুল জীবনের প্রিয় শিক্ষক মোহাম্মদ ইসহাক স্যারের খোঁজ নিলেন তথ্যমন্ত্রী ড. হাছান মাহমুদ। তিনিগতকাল শুক্রবার প্রিয় শিক্ষকের বাসায় গিয়ে পাঁয়ে ধরে সালাম করেন। এসময় শিক্ষক এবং ছাত্র দু’জনেই আবেগ আপ্লুত হয়ে পড়েন। চট্টগ্রামের সরকারি মুসলিম হাই স্কুলের ছাত্র ছিলেন হাছান মাহমুদ। এই স্কুল থেকে কৃতিত্বের সাথে এসএসসি পাশ করেন তিনি। বয়সের ঘরে আশি বছর পার করা এই গুণী শিক্ষক ১৯৯৪ সালে প্রধান শিক্ষকের পদ থেকে অবসর নেন। সময়ের পরিক্রমায় হাছান মাহমুদ আজ তথ্যমন্ত্রী ও আওয়ামী লীগের প্রচার ও প্রকাশনা সম্পাদক। রাষ্ট্রীয় নানা গুরুত্বপূর্ণ কাজে দিন-রাত ব্যস্ত থাকলেও ভুলতে পারেননি মুসলিম হাই স্কুল এবং প্রিয় শিক্ষকের স্মৃতি। শ্রদ্ধা এবং ভালোবাসার টানে আজ শুক্রবার সকাল সাড়ে ১১টায় ইংরেজি শিক্ষক মোহাম্মদ ইসহাককে তাঁর বায়েজিদ থানার টেক্সটাইল ৩ নম্বর রোডের বাসায় দেখতে যান তথ্যমন্ত্রী। প্রিয় ছাত্রকে পাঁয়ে ধরে সালাম করতে দেখে চোখ ভিজে যায় প্রবীণ শিক্ষক মোহাম্মদ ইসহাকের। একইভাবে প্রিয় শিক্ষকের সান্নিধ্যে আবেগ আপ¬ুত হয়ে পড়েন তথ্যমন্ত্রীও। তথ্যমন্ত্রীর সঙ্গে এসময় একই ব্যাচের দুই শিক্ষার্থীও ছিলেন। বহুদিন পর কাছে পেয়ে হাছান মাহমুদের কাছে শিক্ষক মোহাম্মদ ইসহাক মন্ত্রীর পারিবারিক জীবন এবং সদস্যদের সর্ম্পকে জানতে চান। প্রিয় শিক্ষকের কাছে তথ্যমন্ত্রী জানতে চান, এখন মুসলিম হাই স্কুলে পড়াশোনার মান কেমন ? জবাবে শিক্ষক বললেন ‘খুবই ভালো। প্রথম, দ্বিতীয়, তৃতীয়-এর মধ্যে থাকেই।’ আলাপচারিতার সময় শিক্ষক মোহাম্মদ ইসহাক বলেন, তিনি ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয় থেকে ইংরেজিতে মাস্টার্স করেছেন, আবার বৈরুতে আমেরিকান ইন্টারন্যাশনাল ইউনিভার্সিটি থেকেও ইংরেজিতে এমএ করেছেন। পরে তিনি শিক্ষকতায় এসেছেন। ‘শিক্ষকতায় না আসলে সচিব হতেন’ তথ্যমন্ত্রীর এমন বক্তব্যের জবাবে তিনি বলেন, ‘আমি তো সেখানে (প্রশাসনের কর্মকর্তা) যাবো না বলে আগে থেকেই ঠিক করেছিলাম। ‘স্মৃতিচারণ করে তথ্যমন্ত্রী জানতে চান, ‘স্যার আগে সাইকেল চালাতেন, এখনও কি চালান ?’ জবাবে স্যার বলেন, ‘অনেকদিন ধরে চালাই না।’ ড. হাছান বলেন, ইসহাক স্যার সেসময়ে বাই সাইকেল নিয়ে চট্টগ্রাম শহরে ছাত্রছাত্রীদের বাড়ি বাড়ি গিয়ে খোঁজ নিতেন। স্যারের মতো গুণী শিক্ষকরা তাদের মেধা, প্রজ্ঞা ও অভিজ্ঞতা দিয়ে দেশে আলোকিত মানবসম্পদ  তৈরিতে অসামান্য অবদান রেখেছেন। স্যারের অসামান্য অবদান ভুলে যাবার নয়। ফিরে যাওয়ার আগে আরেকবার প্রিয় শিক্ষকের পাঁ ধরে সালাম করেন তথ্যমন্ত্রী ড. হাছান মাহমুদ। শিক্ষক মোহাম্মদ ইসহাকও মাথায় হাত বুলিয়ে দোয়া করেন মন্ত্রীকে।

 

কুষ্টিয়া পৌর ঈদগাহ্ েঈদ-উল-আযহা’র জামাত সকাল ৮টায়

কুষ্টিয়া পৌরসভা পরিচালিত ফায়েজুল গোরাবাহ্ ওয়াক্ফিয়াত পৌর ঈদগাহ্ -এ ঈদ-উল-আযহা-২০১৯ এর একমাত্র নামাজের জামাত সকাল ৮টায় অনুষ্ঠিত হবে। গত ৮-৮-২০১৯ তারিখে সন্ধ্যায় ম.আ.রহিম মিলনায়তনে ঈদগাহ্ পরিচালনা কমিটির সভাপতি ও কুষ্টিয়া পৌরসভার পময়র আনোয়ার আলী’র সভাপতিত্বে অনুষ্ঠিত এক সভায় এ সিদ্ধান্ত গৃহীত হয়। ধর্মপ্রাণ মুসল্লীগণকে নিজ নিজ জায়নামাজসহ যথা সময়ে ঈদগাহ্ েউপস্থিত হওয়ার জন্য আহবান জানিয়েছেন মেয়র আনোয়ার আলী। সংবাদ বিজ্ঞপ্তি

ঈদযাত্রায় মহাসড়কে কোনও সমস্যা নেই, দাবি সেতুমন্ত্রীর

ঢাকা অফিস ॥ এবারের ঈদযাত্রায় মহাসড়কে কোনও সমস্যা নেই বলে দাবি করেছেন আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক এবং সড়ক পরিবহন ও সেতুমন্ত্রী ওবায়দুল কাদের। গতকাল শুক্রবার তিনি বলেন, এবারকার ঈদযাত্রায় সড়ক-মহাসড়কে কোনও সমস্যা নেই। সমস্যা হচ্ছে ফেরিঘাটে। সমস্যা হচ্ছে পাটুরিয়া-দৌলতদিয়া ঘাটে, নদীতে প্রচন্ড স্রোত। মাওয়া থেকে জাজিরা প্রান্তেও প্রচ- স্রোত। সেখানে মাঝে মাঝে ফেরি বন্ধ হয়ে যায়। নদীর স্রোতের কারণে ফেরি চলাচল বিঘিœত হচ্ছে। যার কারণে গাড়ি আসতে পারছে না। গতকাল শুক্রবার সকালে গাবতলী বাস টার্মিনালে ঈদযাত্রা পরিস্থিতি পর্যবেক্ষণ করতে এসে এসব কথা বলেন তিনি। মন্ত্রী বলেন, আমরা আশা করছি পরিস্থিতি স্বাভাবিক হয়ে যাবে। গতকাল (গত বৃহস্পতিবার) ভারী বর্ষণ ছিল, সিগন্যাল (সতর্ক সংকেত) ছিল, নিম্নচাপের কারণে ঘরমুখো যাত্রা স্বস্তিদায়ক ছিল না। তবে আজ (গতকাল শুক্রবার) যাত্রা স্বস্তিদায়ক আছে। দুর্যোগপূর্ণ আবহাওয়া আর ভারী বর্ষণ না হলে আমার মনে হয় ঈদযাত্রা স্বস্তিদায়ক হবে। কারণ রাস্তায় কোনও সমস্যা নেই, সমস্যা শুধু ফেরিঘাটে। তিনি আরও বলেন, অতিরিক্ত ভাড়ার বিষয়ে আমরা কঠোরভাবে মনিটরিং করছি। এখানে ভিজিলেন্স টিম আছে। পুলিশ, র‌্যাব, বিআরটিএ কাজ করছে। রংপুরগামী একটি পরিবহন অতিরিক্ত ভাড়া নিচ্ছিল বলে তাদের দুই জনকে গ্রেফতার করা হয়েছে। অতিরিক্ত ভাড়া কোনও ভাবেই সহ্য করা হবে না। ওবায়দুল কাদের বলেন, এডিস মশা মানুষের চেয়ে শক্তিশালী নয়। আমরা নির্ভয়ে অনেক চ্যালেঞ্জ মোকাবিলা করেছি, এটাও আমরা পারবো। তিনি বলেন, প্রধানমন্ত্রী গতকাল (গত বৃহস্পতিবার) বলেছেন, ডেঙ্গু নিয়ে-এডিস মশা নিয়ে মৌসুমি প্রস্তুতি নিলে চলবে না। সারা বছরেই সচেতনতা প্রোগ্রাম এবং অ্যাকশন প্রোগ্রাম থাকতে হবে। দেশের উন্নত হওয়ার পথে থাকায় ডেঙ্গু বাড়ছে- সরকারের একজন মন্ত্রীর এমন মন্তব্যের বিষয়ে প্রশ্ন করা হলে ওবায়দুল কাদের বলেন, কে ব্যক্তিগতভাবে কী বললো সেটা ব্যাপার না। আসল কথা হচ্ছে আমরা যা বলেছি তা করছি কিনা। আমি বিশ্বাস করি ডেঙ্গু কিংবা এডিস মশা মানুষের চেয়ে শক্তিশালী কিছু নয়। আমরা নির্ভয়ে অনেক চ্যালেঞ্জ মোকাবিলা করেছি, এটাও আমরা পারবো। দুই একজনের ছিটেফোঁটা মন্তব্য দিয়ে তো আমাদের সার্বিক কর্মকা-কে মূল্যায়ন করা যাবে না। মন্ত্রী বলেন, আপনারা জানেন, ডেঙ্গু জ¦র সারাদেশে আতঙ্ক ছড়িয়ে দিয়েছে। মানুষের মাঝে এডিস মশার ভয় কাজ করছে। এজন্য ঘরে যাওয়ার আনন্দ তো আছেই, তার সঙ্গে কিছু সমস্যাও আছে। আমরা যাত্রা স্বস্তিদায়ক করার জন্য সর্বাত্মক চেষ্টা করবো। আমরা সর্বাত্মকভাবে সব ডিপার্টমেন্ট নিয়ে ডেঙ্গু মোকাবিলায় প্রস্তুত। প্রধানমন্ত্রী দেশে ফেরার পর কর্মতৎপরতা আরও জোরদার হয়েছে। এই ভয়াবহ পরিস্থিতি মোকাবিলায় আমাদের সহযোগিতা অব্যাহত থাকবে। মশা মারার ওষুধ এরইমধ্যে এসে গেছে এবং ওষুধ ছিটানোর কাজটাও শুরু হয়ে যাবে। আমরা আশা করি কার্যকর ওষুধ প্রয়োগের পর ধীরে ধীরে ডেঙ্গু পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রণে আসবে। এখনই নিয়ন্ত্রণে এসেছে একথা আমি দাবি করতে পারবো না। তবে ঈদের মধ্যে যাতে পরিস্থিতি জটিল না হয়, নিয়ন্ত্রণের বাইরে না যায়, সেজন্য সরকারের পক্ষ থেকে আমরা সর্বাত্মক প্রয়াস অব্যাহত রেখেছি। তিনি বলেন, ঈদের সময় ডেঙ্গু যাতে সারা দেশে ছড়িয়ে না পড়ে, আমরা সে বিষয়টি নিয়েও সচেষ্ট আছি। সেতুমন্ত্রী বলেন, আমরা আগেই বলেছি, কারো জ¦র জ¦র ভাব হলে তিনি যাতে গ্রামে যাওয়ার আগে রক্ত পরীক্ষা করে যান। ঈদের সময়টাকে আমরা বেশ গুরুত্বের সঙ্গে দেখছি। এ সময় অসাবধানতাবশত ডেঙ্গু রোগ সারা দেশে ছড়িয়ে পড়তে পারে। ঈদের সময়টাকে ডেঙ্গু নিয়ে আমাদের জটিল পরিস্থিতিতে পড়তে না হয়, সেই চেষ্টাই আমরা করছি। সরকারের পাশাপাশি জনগণকে ডেঙ্গু রোগ বিষয়ে আরো সচেতন হওয়ার আহ্বান জানিয়ে ওবায়দুল কাদের বলেন, আমরা প্রত্যেক নাগরিক যদি নিজ নিজ দায়িত্ব সঠিকভাবে পালন করি, তাহলে পরিস্থিতি খুব সজজেই মোকাবিলা করা সম্ভব।

কুষ্টিয়া পূর্ব মজমপুরে ডেঙ্গু প্রতিরোধ, মশক নিধন ও পরিচ্ছন্নতা অভিযানে মৃনাল কান্তি দে

আপনার  আঙ্গিনা পরিস্কার রাখার দায়িত্ব আপনার নিজের

নিজ সংবাদ ॥ কুষ্টিয়া স্থানীয় সরকারের উপ-পরিচালক মৃনাল কান্তি দে বলেছেন, ডেঙ্গু একটি ভাইরাস জ্বর আর এই ভাইরাস বহন করে এডিস নামক একটি মশা। একটু সচেতন হওয়ার মাধ্যমে খুব সহজেই ডেঙ্গু মোকাবেলা করা সম্ভব। তিনি বলেন, ডেঙ্গু মোকাবেলায় সরকার বিভিন্ন কর্মসূচি গ্রহণ করেছে। এ কর্মসূচি বাস্তবায়নে সচেতন নাগরিক হিসেবে আপনাদের অংশগ্রহন কামনা করি। তিনি আরও বলেন, আপনার নিজ আঙ্গিনা পরিস্কার রাখার দায়িত্ব আপনার নিজের। আশারাখি সচেতন নাগরিক হিসেবে অবশ্যই আপনারা নিজ নিজ আঙ্গিনাসহ বাসস্থল পরিস্কার রাখবেন। কারন পরিস্কার-পরিচ্ছন্নতা  ডেঙ্গু প্রতিরোধের অন্যতম হাতিয়ার। তিনি বলেন, সরকারের পক্ষ থেকে যথেষ্ট সচেতনতা সৃষ্টি করা হয়েছে। এখন প্রতিটি ওয়ার্ডে পরিস্কার-পরিচ্ছন্নতা  রক্ষা কমিটি গঠনের মাধ্যমে এলাকায় সার্বিক রিপোর্ট গ্রহন করা হবে। সেই রিপোট অনুযায়ী যে সকল বাড়ির আঙ্গিনা অপরিস্কার থাকবে সেই বাড়ির মালিককে জরিমানা করা হবে। গতকাল শুক্রবার সকালে কুষ্টিয়া পৌর ১৮নং ওয়ার্ডের পূর্ব মজমপুরে ডেঙ্গু প্রতিরোধ, মশক নিধন ও পরিচ্ছন্নতা অভিযানে ডেঙ্গু প্রতিরোধে এক সচেতনতা মূলক আলোচনা সভায় প্রধান অতিথির বক্তৃতায়  মৃনাল কান্তি দে  এসব কথা বলেন। আলোচনা সভায় সভাপতিত্ব করেন কুষ্টিয়া চেম্বার অব কমার্স এন্ড ইন্ডাষ্টির সাবেক পরিচালক বিশিষ্ট সমাজসেবক আলহাজ্ব মজিবর রহমান। সভায় বিশেষ অতিথির বক্তৃতা করেন কুষ্টিয়া প্রেসক্লাবের সাধারণ সম্পাদক আনিসুজ্জামান ডাবলু, কুষ্টিয়া সদর উপজেলা পরিষদের ভাইস চেয়ারম্যান আবু তৈয়ব বাদশা, পৌর ১৮নং ওয়ার্ডের কাউন্সিলর শাহ জালাল, পূর্ব মজমপুর জামে মসজিদ কমিটির সাধারণ সম্পাদক আলহাজ্ব ইউনুস আলী। সভা পরিচালনা করেন ইসলামী বিশ্ববিদ্যালয়ের তথ্য, প্রকাশনা ও জনসংযোগ অফিসের সহকারী রেজিস্ট্রার রাশিদুজ্জামান খান টুটুল।

কুষ্টিয়া সদর উপজেলা পরিষদের ভাইস চেয়ারম্যান আবু তৈয়ব বাদশা ও পুর্ব মজমপুর এলাকাবাসীর আয়োজনে এ অভিযান চালানো হয়।

সভায় বিশেষ অতিথি কুষ্টিয়া প্রেসক্লাবের সাধারণ সম্পাদক আনিসুজ্জামান ডাবলু বলেন,  সঠিক সময়ে সঠিক চিকিৎসা করালে ডেঙ্গু রোগী সম্পূর্ণ রূপ ভালো হয়ে যাবে। তাই এ রোগ নিয়ে আতংকিত না হয়ে সকলকে সচেতন হতে হবে।

অপর বিশেষ অতিথি কুষ্টিয়া সদর উপজেলা পরিষদের ভাইস চেয়ারম্যান আবু তৈয়ব বাদশা বলেন, জ্বর দেখা দিলে অযথা আতঙ্কিত না হয়ে চিকিৎসকের পরামর্শ নিয়ে রক্তের পরিক্ষা করিয়ে প্রকৃতি অবস্থা সম্পর্কে নিশ্চিত হতে হবে।

অপর আরেক বিশেষ অতিথি পৗর ১৮ নং ওয়ার্ডের কাউন্সিলর শাহ জালাল বলেন, যেহেতু এডিস মশা দিনের বেলায় কামড়ায় তাই দিনের বেলায় বিশ্রাম নেওয়ার সময় মশারি ব্যবহার করতে হবে। এর আগে পূর্ব মজমপুর এলাকার ড্রেনে মশক নিধন ওষুধ ছিটানো হয়, রাস্তা ও ড্রেনের দু’পাশে পরিস্কার পরিচ্ছন্ন করা হয়।

 

পবিত্র হজ পালনের আনুষ্ঠানিকতা শুরু

ঢাকা অফিস ॥ সারাবিশ্বের বিভিন্ন দেশ থেকে এসে মক্কায় সমবেত হওয়া ২০ লাখের বেশি ধর্মপ্রাণ মুসলমান বার্ষিক পবিত্র হজ পালনের আনুষ্ঠানিকতা শুক্রবার শুরু করেছেন। খবর এএফপি’র। ইসলামের পাঁচটি গুরুত্বপূর্ণ স্তম্ভের একটি হচ্ছে পবিত্র হজ। এটি বিশ্বের বৃহত্তম ধর্মীয় সমাবেশগুলোর মধ্যে অন্যতম। সামর্থ্যবান প্রত্যেক মুসলমানের তাদের জীবনে অন্ততপক্ষে একবার অবশ্যই হজ পালন করতে হবে। ধারাবাহিকভাবে ধর্মীয় বিভিন্ন আচার-অনুষ্ঠান পালনের মধ্যদিয়ে হজ পালন করতে হয়। সৌদি আরবের পশ্চিমাঞ্চলীয় ইসলামের পবিত্র নগরী মক্কা ও এর আশেপাশের বিভিন্ন স্থানে অবস্থান করে হজ পালন শেষ করতে পাঁচদিন সময় লাগে। সৌদি আরবের নিরাপত্তা বাহিনীর মুখপাত্র বাসাম আতিয়া বলেন, হজযাত্রীদের নিরাপত্তা নিশ্চিত করতে ‘রাষ্ট্রের সকল সশস্ত্র বাহিনীকে মোতায়েন করা হয়েছে। আমরা ‘মহান আল্লাহ’র অতিথিদের’ সেবা করতে পেরে গর্বিত। স্থানীয় সংবাদমাধ্যমের খবরে বলা হয়, এ বছর মোট প্রায় ২৫ লাখ ধর্মপ্রাণ মুসলমান পবিত্র হজ পালন করছে। এসব হজযাত্রীর অধিকাংশ বিশ্বের বিভিন্ন দেশ থেকে মক্কায় এসেছেন। হজ মন্ত্রণালয়ের কর্মকর্তা হাতিম বিন হাসান কাদি বলেন, এ বছর হজযাত্রীদের ‘কোন এজেন্ট ছাড়াই ১৮ লাখের বেশি ভিসা অনলাইনে সরবরাহ করা হয়েছে। আমাদের জন্য এটি একটি বড় সফলতা।’ ৪০ বছর বয়সী মিশরের হজযাত্রী মোহাম্মাদ জাফর বলেন, ‘ইসলামের এই পবিত্র স্তম্ভ পালনের মধ্যদিয়ে আমরা আমাদের জীবনের সকল পাপ মোচনের চেষ্টা করি। বিশ্বের বিভিন্ন দেশ থেকে আসা ধর্মপ্রাণ মুসলমানদের এই সমাবেশ সত্যিই বিস্ময়কর।’ তিনি আরো বলেন, এটি ‘একটি অবর্ণনীয় অনুভূতি।’ এই প্রথমবারের মতো পবিত্র হজ পালনে আসা ৫০ বছর বয়সী আলজেরীয় এক নাগরিক বলেন, ‘এটি একটি অবর্ণনীয় অনুভূতি। কেবলমাত্র আপনি এটা পালন করলে এই অনুভূতিটা বুঝতে পারবেন।’ তার নারী সঙ্গী বলেন, ‘এটি একটি সুবর্ণ সুযোগ ও মুহূর্ত।’