বাংলাদেশের সবাই আওয়ামী লীগের সমালোচনার সাহস হারিয়েছে – ফখরুল

ঢাকা অফিস ॥ বাংলাদেশে এখন সবাই আওয়ামী লীগের সমালোচনার সাহস হারিয়েছে বলে দাবি করেছেন বিএনপি মহাসচিব মির্জা ফখরুল ইসলাম আলমগীর। তিনি বলেছেন, “আজকাল টেলিভিশনের টক শোগুলোতে তথাকথিত বুদ্ধিজীবী যান, তারা ওই জিনিসগুলো বেশি বলতে থাকেন কোথাও বিএনপি ভুল করল, কোথায় ঐক্যফ্রন্ট ভুল করল? আর আওয়ামী লীগ যে ভুল নয়, ইচ্ছাকৃতভাবে রাষ্ট্রকে ধ্বংস করে দিল, সে বিষয়ে কথা বলার সাহস কারও নেই।” জাতীয় প্রেস ক্লাবে গতকাল শনিবার ‘আওয়াজ’ নামে একটি অরাজনৈতিক সংগঠনের আত্মপ্রকাশ উপলক্ষে ‘সহিংসতা ও নারী : বর্তমান প্রেক্ষাপট’ শীর্ষক আলোচনা অনুষ্ঠানে একথা বলেন বিএনপি মহাসচিব। ফখরুল বলেন, “যখন ফ্যাসিবাদ চলে, তখন সর্বপ্রথম কাজটা কী করে থাকে? একটা ভয় সৃষ্টি করা, ত্রাস সৃষ্টি করা, সমস্ত জনগণের মধ্যে একটা ভীতি ছড়িয়ে দেওয়া। এই ভীতিতে বাসে বসেও কেউ কথা বলতে চান না, রেস্টুরেন্টে বসেও কেউ কথা বলতে চান না। এভাবে তারা একটা ভয়ভীতি ছড়িয়ে দিয়েছে যে এখন আর কেউ কথাই বলতে চায় না। এটা দিয়ে কোনোদিন একটা গণতান্ত্রিক রাষ্ট্র পরিচালিত হতে পারে না। আজকে ফ্যাসিবাদী রাষ্ট্র প্রতিষ্ঠিত হয়ে গেছে। এটা শুধু আমাদের কথা নয়, দেশের আপামর জনসাধারণ বলছে। ইকনোমিস্টের মতো পত্রিকা ক্যাপশন করছে, গণতন্ত্রের মৃত্যুর সংবাদ দেওয়া হচ্ছে। অর্থাৎ গোটা পৃথিবীর মিডিয়া জানে, বাংলাদেশে এখন গণতন্ত্র ধ্বংস হয়ে গেছে।” বিএনপি মহাসচিব বলেন, “কেন আমরা মরার আগে মরে যাচ্ছি? কেন আমরা ভয়ে ভীত হয়ে, সন্ত্রস্ত হয়ে সবাই ঘরে ঢুকে থাকার চেষ্টা করছি? ঘরে ঢুকে থেকে তো আমরা বাঁচব না। অনেকে মনে করেন, এখন তো বিএনপিকে ধরছে, ঐক্যফ্রন্টকে ধরছে, ওদেরই ধরুক, আমরা বাঁচব। এবার তো কেউই বাঁচল না, কেউ বাঁচে না। সারাদেশে আসামির সংখ্যা এখন ২৭ লাখ, মামলার সংখ্যা ৯৮ হাজার।” এই পরিস্থিতিতে সবাইকে রুখে দাঁড়ানোর আহ্বান জানিয়ে ফখরুল বলেন, “এই নির্বাচনে একটা বড় কাজ হয়েছে আওয়ামী লীগ জনগণের কাছ থেকে চিরদিনের জন্য চলে গেছে। জনগণের জয় হয়েছে, তারা পরাজিত হয়েছে। আপনারা ভয় পাবেন না, সারাদেশের মানুষ আপনাদের সঙ্গে আছে। আমাদের আফরোজা আপা (মির্জা আব্বাসের স্ত্রী) আমাদের সামনে একটা অনুপ্রেরণা। আমরা দেখেছি যে নির্বাচনের সময়ে অনেক বাঘা বাঘা পুরুষরা কেউ বেরুতে পারেননি, তখন কিন্তু তিনি লড়াই করে চলেছেন।” অনুষ্ঠানের মূল প্রবন্ধে ‘আওয়াজ’র সাধারণ সম্পাদক ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের সাবেক ডিন অধ্যাপক শাহিদা রফিক নারী নির্যাতনের অতীত ও বর্তমান পরিসংখ্যান তুলে ধরে এর ব্যাপকতায় উদ্বেগ প্রকাশ করেন। তার প্রবন্ধে নারীর প্রতি সহিংসতা রোধে একটি আলাদা মন্ত্রণালয় স্থাপন, আইনের কঠোর প্রয়োগ, জাতীয় কর্ম পরিকল্পনা প্রণয়নসহ ১১ দফা সুপারিশমালা উপস্থাপন করেন। আওয়াজের সভানেত্রী বিএনপির সহসভাপতি সেলিমা রহমানের সভাপতিত্বে ও বিলকিস ইসলামের পরিচালনায় অনুষ্ঠানে আলোচনা করেন জাহাঙ্গীরনগর বিশ্ববিদ্যালয়ের অধ্যাপক দিলারা চৌধুরী, ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের অধ্যাপক তাজমেরী এস ইসলাম, বিএনপির সাংগঠনিক সম্পাদক বিলকিস জাহান শিরিন, মহিলা বিষয়ক সম্পাদক নুরী আরা সাফা, মহিলা দলের নেত্রী রাশেদা বেগম হীরা, সেলিনা রউফ চৌধুরী, লায়লা বেগম, রাশেদা ওয়াহিদ মুক্তা, সাদিয়া হক, রাফিকা আফরোজা, নুরজাহান মাহবুব, অধ্যাপক মো. লুতফর রহমান, আবু নাসের মুহাম্মদ রহমাতুল্লাহ, মোকছেদুর রহমান আবির, সম্প্রতি নির্যাতিত এক কিশোরীর বাবা রকি আলম। নারীর উপর সহিংসতা প্রসঙ্গ টেনে ফখরুল বলেন, “এখন একজন বলেছেন, রাজনীতির বাইরে থেকে এই সমস্যার সমাধান করতে হবে। কে করবে, কে দেখবে, কে বিচার করবে, কে শাস্তি দেবে? কারা বিচারের আওতায় নিয়ে আসবে। একজন তার ৯ বছরের মেয়ে ধর্ষিত হয়েছে, তার মামলা করতে গিয়ে বিভিন্ন জায়গায় টাকা দিতে হচ্ছে। কোথায় যাবেন আপনারা, সাধারণ মানুষের যাওয়ার কোথাও জায়গা নেই।” ভোটের পর নির্বাচনী সহিংসতায় নোয়াখালীর সুর্বণচরে পারুল বেগমসহ নোয়াখালীর কবিরহাট, ঢাকার ফতুল্লা ও খুলনায় নারী নির্যাতনের ঘটনার তুলে ধরেন বিএনপি মহাসচিব। তিনি বলেন, “সাধারণ মানুষকে সঙ্গে নিয়ে এসব অন্যায়ের প্রতিবাদ করতে হবে, অন্যায়কে পরাজিত করতে হবে, ন্যায়কে প্রতিষ্ঠিত করতে হবে।” বিএনপি চেয়ারপারসন খালেদা জিয়াকে রাজনৈতিক কারণে আটকে রাখা হয়েছে বলেও অভিযোগও করেন ফখরুল। ঢাকা-৯ আসনের ধানের শীষের প্রার্থী মহিলা দলের সভানেত্রী আফরোজা আব্বাস নির্বাচনের সময়ে তার উপর আওয়ামী লীগের নেতা-কর্মীর হামলার ঘটনা তুলে ধরে বলেন, “আমার উপর ১০ বার হামলা হয়েছে। আওয়ামী সন্ত্রাসীরা আমাদের কর্মীদের চুলের মুঠি ধরে নির্যাতন করেছে, অশালীন আচরণ করেছে, গায়ে চাপাতিসহ বিভিন্ন অস্ত্র দিয়ে আঘাত করেছে, যেটা ভাষায় প্রকাশ করা যায় না। প্রশাসনের সহায়তায় এইসব হামলা হয়েছে। যেখানে গণতন্ত্র নেই, স্বাধীনতা নেই, সেখানে এই ধরনের হামলা হবে, নারী নির্যাতন হবে, গণসহিংসতা, গণসন্ত্রাস, গণধর্ষণের ঘটনা ঘটবে।” আফরোজা বলেন, “আমরা দৃঢ়তার সাথে বলতে চাই, শেষ রক্তবিন্দু থাকা পর্যন্ত আমরা দেশনেত্রী বেগম খালেদা জিয়ার কর্মীরা এসব অন্যায়ের প্রতিবাদ করব, প্রতিবাদ করে যাবই। ভাই-বোনদের আমি বলতে চাই, কেউ ভয় পাবেন না, হতাশ হবেন না, সেখানে অন্যায় দেখবেন, সেখানেই প্রতিবাদের আওয়াজ তুলন, শক্তভাবে দাঁড়িয়ে প্রতিবাদ করুন।” সেলিমা রহমান নতুন এই নারী সংগঠন গড়ে তোলার যৌক্তিকতা তুলে ধরেন। তিনি বলেন, “গত একবছর ধরে নারীর উপর সহিংসতা ভয়াবহ আকারে বেড়ে গেছে। যেসব নারী সংগঠন আছে, বর্তমানে কারও কাছ থেকে কোনো আওয়াজ নেই, কোনো কথা নেই, কোনো প্রতিবাদ নেই। ওরা চিন্তা করছে, আওয়াজ তুললে, কথা বললে বর্তমান সরকারের রোষানলে পড়তে হবে। তখন আমরা চিন্তা করলাম দলমত নির্বিশেষে আমরা আওয়াজ তুলব সব ধরনের অন্যায়ের প্রতিবাদে। এটা আমাদের প্রথম অনুষ্ঠান। বর্তমান সমাজ ব্যবস্থায় এত নির্যাতন ও অন্যায় হচ্ছে গণতন্ত্রহীনতা, বিচারহীনতার কারণে। যখন রাষ্ট্রযন্ত্র দূর্বল হয়ে পড়ে, তখন সেই রাষ্ট্রযন্ত্রের সকল প্রতিষ্ঠান ধ্বংস হয়ে যায়। ক্ষমতাসীনদের লোভ, দুর্নীতি ও ক্ষমতার দম্ভে আজকে বাংলাদেশে সেটিই হচ্ছে। এর বিরুদ্ধে আমাদের সকলকে সোচ্চার হতে হবে।” ভোট ডাকাতির অভিযোগ তুলে সংসদ সদস্য হিসেবে শপথ না নেওয়ার সিদ্ধান্ত নেওয়া ফখরুল বলেন, “নৈতিক কোনো বৈধতা নেই এই সংসদ বসার। কারণ তারা নির্বাচিত নয়। নির্বাচনের নামে একটা সম্পূর্ণ একটি প্রহসন হয়েছে। আমি যেটাকে মনে করি একটা নিষ্ঠুর প্রহসন হয়েছে গোটা জাতির প্রতি।

মিরপুরে ইউএনও এসএসসি’র বিভিন্ন কেন্দ্র পরিদর্শন

আমলা অফিস ॥ কুষ্টিয়ার মিরপুরে এসএসসি পরীক্ষার বিভিন্ন কেন্দ্র পরিদর্শন করেছেন উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা এসএম জামাল আহমেদ। গতকাল শনিবার উপজেলার মিরপুর পাইলট উচ্চ বিদ্যালয়, মিরপুর মহিলা ডিগ্রি কলেজ, মিরপুর ফাজিল মাদ্রাসা ও মিরপুর সরকারি বালিকা বিদ্যালয় কেন্দ্র পরিদর্শন করেন। এসময় তিনি পরীক্ষা কক্ষের পরিবেশ দেখে সন্তোষ প্রকাশ করেন।

দৌলতপুরে সড়ক নির্মাণে অনিয়মের অভিযোগ

নিজ সংবাদ ॥ কুষ্টিয়ার দৌলতপুর উপজেলার থানা মোড় থেকে আহসান নগর কারিগরি কলেজ পর্যন্ত ৩৬৬৫ মিটার সড়ক সংস্কার কাজ চলছে। বেশ জোরে সোরেই শুরু হয়েছে কাজটি। টাকার অংকও যে কম তা নয়। ২কোটি ৪৩ লাখ টাকা। কিন্তু কাজের মান নিয়ে প্রশ্ন উঠেছে। বিটুমিন, খোয়া সব সরঞ্জামাদিই নাকি মানসম্মত নয়। কোন কোন সরঞ্জাম বহু আগের ব্যবহৃত। যদিও কাজের মান যাচাই বা তদারকির দায়িত্ব স্থানীয় প্রশাসনের। তারা কিভাবে কাজ বুঝে নিবেন সেই দায়িত্বও তাদেরই। কাজে নয়, ছয় থাকলে তার জবাব দিহিতাও তাদের। তবে বর্তমান সরকার যেকোন অনিয়ম দুর্নীতিকে না বলেছে। সত্যতা প্রমাণ মিললেই ব্যবস্থা। নাম প্রকাশে অনিচ্ছুক থানা মোড় এলাকার বাসিন্দা জানান কাজের মান দেখে মনে হচ্ছে খুব একটা ভালো নয়। কর্তৃপক্ষের নজর দেয়া উচিৎ। যদিও ঠিকাদারী প্রতিষ্ঠান ছাদিকুজ্জামান এন্টার প্রাইজের দাবী নিয়ম মেনেই কাজ হচ্ছে। কোন অনিয়ম ও দুর্নীতির প্রশ্নই ওঠেনা। সংশ্লিষ্ট কর্তৃপক্ষ কাজ বুঝে নিচ্ছেন।

বিএনপির পুর্ননির্বাচন দাবি বাচ্চাসুলভ আবদার – তথ্যমন্ত্রী

ঢাকা অফিস ॥ বিএনপির পুর্ননির্বাচন দাবিকে বাচ্চাসুলভ আবদার বলে মন্তব্য করেছেন তথ্যমন্ত্রী ড. হাছান মাহমুদ এমপি। গতকাল শনিবার দুপুরে চট্টগ্রাম জেলা পরিষদ মিলনায়নে এক সংবর্ধনা অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথি বক্তব্য রাখতে গিয়ে এই মন্তব্য করেন। তথ্যমন্ত্রী বলেন, কোনো ফুটবল ম্যাচে ১০ গোল খেয়ে হেরে যাওয়ার পর কেউ যদি আবার খেলার আবদার করে তা কেবল ছোট্ট শিশুদের কান্নাকাটি ছাড়া আর কিছুই নয়। ৫ বছর পর আবার নির্বাচনে প্রস্তুতি নেয়ার জন্য বিএনপির প্রতি আহ্বান জানিয়ে তথ্যমন্ত্রী বলেন, ২০১৪ সালের নির্বাচনের পর সরকার ৫ বছর সফলভাবেই দেশ পরিচালনা করেছে। ২০১৮ সালের নির্বাচনের পরও আগামী ৫ বছর সরকার দেশ পরিচালনা করবে। ৫ বছর পর আবার নির্বাচন হবে। ইতিবাচক রাজনীতি করার মাধ্যমে ৫ বছর পর আবার নির্বাচনের প্রস্তুতি নিতে নেতিবাচক রাজনীতি পরিহার করার আহ্বান জানান তথ্যমন্ত্রী। তথ্যমন্ত্রী বলেন, আজ প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা দেশের সমস্ত রাজনৈতিক দল এবং জোটকে চা চক্রে আমন্ত্রণ জানিয়েছেন। বিশেষ করে যারা গত নির্বাচনের পূর্বে প্রধানমন্ত্রীর সঙ্গে সংলাপে বসেছিলেন। অত্যন্ত দুঃখজনক এই আমন্ত্রনে বিএনপি ও ঐক্যজোট সাড়া দেয়নি। তাদের সাড়া না দেওয়া অত্যন্ত স্বাভাবিক মন্তব্য করে তথ্যমন্ত্রী বলেন, যারা নেতিবাচক রাজনীতি করে তারা এই চা চক্রে যাবেন না। যারা মানুষকে জিম্মি করে রাজনীতি করে, রাজনীতির নামে তারা মানুষ পুড়িয়ে হত্যা করেছে। প্রধানমন্ত্রী তাদের প্রতি অনেক বাদন্যতা দেখিয়েছেন। যে দলের নেত্রী নিজের জন্মের তারিখ বদলে দিয়ে ১৫ আগস্ট হত্যাকান্ডকে উপহাস করার জন্য হত্যাকারীদের উৎসাহিত করার জন্য কেক কাটেন তারা প্রধানমন্ত্রীর চা চক্রে যাবেন না এটাই খুব স্বাভাবিক। আবুধাবী বঙ্গবন্ধু পরিষদের সভাপতি প্রবাসী নেতা ইফতেখার হোসেন বাবুলের সংবর্ধনা উপলক্ষে আয়োজিত এই অনুষ্ঠানে তথ্যমন্ত্রী ড. হাছান মাহমুদ আরো বলেন, ‘আমরা বাংলাদেশীরা মেধাবী। সারাবিশ্বে বাংলাদেশিরা মেধার সাক্ষর রাখছে। আজ যে লাখ লাখ প্রবাসী বিদেশে আছে, তারা তাদের শ্রম আর মেধার সাক্ষর রাখতে পারছে বলেই সেখানে তারা সাফল্যের সাথে থাকতে পারছে। শেখ হাসিনার সরকার প্রবাসীদের কল্যাণে অনেক কিছুই করেছে। তিনটি এনআরবি ব্যাংক দেয়া হয়েছে। প্রবাসী কল্যাণ ব্যাংক করা হয়েছে। যারা রেমিটেন্স বেশি পাঠাচ্ছে তাদেরকে সম্মানিত করা হচ্ছে। সরকারি প্লট বা ফ্ল্যাট বরাদ্দ দিলে সেখানে প্রবাসীদের জন্য বিশেষ কোটা ও প্রণোদনা দেয়া হচ্ছে। প্রবাসীরা যাতে প্রবাসে থেকে ভোটাধিকার প্রয়োগ করতে পারে সে ব্যাপারে সরকার এবং নির্বাচন কমিশন কাজ করছে।’ প্রবাসে বাংলাদেশের এক এক জন রাষ্ট্রদূত হিসেবে মন্তব্য করে ড. হাছান মাহমুদ বলেন, তারা তাদের আচার আচরণে মাধ্যমে বিদেশেও দেশের সম্মান তুলে ধরতে পারে। এ ব্যাপারে প্রবাসীরা সচেতন। প্রবাসে গুটিকয়েক মানুষের জন্য যেনো দেশের সম্মান নষ্ট না হয় সে ব্যাপারে প্রবাসীদের সচেতন থাকার আহ্বান জানান ড. হাছান মাহমুদ। মনিরুল আলম চৌধুরী মনির সভাপতিত্বে অনুষ্ঠানে সংবর্ধিত অতিথি ছিলেন প্রবাসী নেতা, আবুদাবী বঙ্গবন্ধু পরিষদের সভাপতি আলহাজ্ব ইফতেখার হোসেন বাবুল, চট্টগ্রাম জেলা পরিষদের সদস্য আখতার উদ্দিন মাহমুদ পারভেজ, রাঙ্গুনিয়া উপজেলা আওয়ামী লীগের সভাপতি আলহাজ্ব খলিলুর রহমান, রাঙ্গুনিয়া উপজেলা চেয়ারম্যান মোহাম্মদ আলী শাহ, আবুধাবী বঙ্গবন্ধু পরিষদ নেতা মোহাম্মদ জমির হোসাইন প্রমুখ।

 

বিএনপি বিদেশে চিঠি দিয়েও ব্যর্থ – কাদের

ঢাকা অফিস ॥ সড়ক পরিবহন ও সেতুমন্ত্রী ওবায়দুল কাদের বলেছেন, নির্বাচন ছাড়া কোনো রাজনৈতিক দলের স্বাভাবিক অস্তিত্ব থাকে না। দেশের বিরুদ্ধে ষড়যন্ত্র করে বিএনপি একদিকে বিদেশি বন্ধু হারিয়েছে, অন্যদিকে আস্থা হারিয়েছে দেশের মানুষের। একাদশ জাতীয় সংসদ নির্বাচনকে প্রশ্নবিদ্ধ করার জন্য বিএনপি দেশ-বিদেশে চিঠি দিয়েও চরমভাবে ব্যর্থ হয়েছে বলেও মন্তব্য করেন মন্ত্রী। গতকাল শনিবার দুপুরে নারায়ণগঞ্জের সোনারগাঁয়ে ঢাকা-চট্টগ্রাম মহাসড়কে কাঁচপুর দ্বিতীয় সেতুর নির্মাণকাজের পরিদর্শন শেষে সাংবাদিকদের এসব কথা বলেন। আসন্ন উপজেলা নির্বাচনে বিএনপির অংশগ্রহণ প্রসঙ্গে তিনি বলেন, তারা নির্বাচনে অংশ নেবে কি না, তা তাদের নিজস্ব ব্যাপার। নির্বাচনে বিএনপি অংশ না নিলে আওয়ামী লীগের বিদ্রোহী প্রার্থীদের কারণে দলের মধ্যে বিরূপ প্রভাব পড়বে কি না, এমন প্রশ্নের জবাবে মন্ত্রী বলেন, বিগত সংসদ নির্বাচনে আওয়ামী লীগের ১৭ জন বিদ্রোহী প্রার্থীর মধ্যে শেষ পর্যন্ত দুজন ছিলেন। একটি বড় দলের জন্য এটা কিছুই না। আশা করি উপজেলা নির্বাচনেও বিদ্রোহী প্রার্থী থাকবে না। মন্ত্রী জানান, কাঁচপুর দ্বিতীয় সেতুর নির্মাণকাজ প্রায় শতভাগ সম্পন্ন হয়েছে। আগামী মার্চ মাসের যেকোনো সময় প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা দ্বিতীয় কাঁচপুর সেতুর উদ্বোধন করবেন। এ ছাড়া মেঘনা ও গোমতী সেতুর ৮৫ শতাংশ কাজ সম্পন্ন হয়েছে। সেতু দুটি আগামী জুন-জুলাই মাসে সেতু দুটি উদ্বোধন করা হবে। এ সময় মন্ত্রীর সঙ্গে সড়ক পরিবহন ও সেতু মন্ত্রণালয়ের ঊর্ধ্বতন কর্মকর্তারা উপস্থিত ছিলেন

সম্ভাবনার বাংলাদেশ সৃষ্টিতে বড় বাধা মাদক – স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী

ঢাকা অফিস ॥ মাদক নির্মূলে সরকার প্রয়োজনীয় সবই করবে বলে জানিয়েছেন স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী আসাদুজ্জামান খাঁন কামাল। তিনি বলেছেন, সম্ভাবনার বাংলাদেশ সৃষ্টিতে বড় বাধা মাদক। গতকাল শনিবার ঢাকা অফিসার্স ক্লাবে ব্যবসায়ীদের এক অনুষ্ঠানে তিনি বলেন, “আমাদের দেশে মাদক তৈরি হয় না, কিছু অসাধু ব্যক্তি মাদক চোরাচালানে জড়িত।” মাদকের বিরুদ্ধে যথাযথ ভূমিকা রাখতে ব্যবসায়ীদের প্রতি আহ্বান জানান স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী। তিনি বলেন, “টেকসই উন্নয়নের জন্য প্রয়োজন টেকসই নিরাপত্তা ও শান্তিময় পরিবেশ, যা বাংলাদেশে বিদ্যমান। ব্যবসায়ীরা যাতে  নিশ্চিন্ত ও নিরাপদ পরিবেশে ব্যবসা করতে পারেন সে পরিবেশ সৃষ্টিতে সরকার বদ্ধপরিকর। বর্তমানে বাংলাদেশে ব্যবসাবান্ধব পরিবেশ বিরাজ করছে। বাংলাদেশ এখন অনেক পণ্য উৎপাদনে স্বয়ংসম্পূর্ণতা অর্জন করে বিদেশে রপ্তানি করছে।” ব্যবসা সম্প্রসারণ ও বৈদেশিক বিনিয়োগ আকর্ষণে আইনশৃঙ্খলা পরিস্থিতির উন্নয়নসহ সার্বিক সহযোগিতা দিতে প্রধানমন্ত্রী সচেষ্ট বলেও জানান কামাল। অনুষ্ঠানে সংসদ সদস্য আবু হোসেন বাবলা, সালাম গ্র“পের চেয়ারম্যান আব্দুস সালামসহ ব্যবসায়ীরা উপস্থিত ছিলেন।

 

ডিএনসিসি মেয়র পদে আতিকসহ ৫ জনের মনোনয়নপত্র বৈধ ঘোষণা

ঢাকা অফিস ॥ ঢাকা উত্তর সিটি কর্পোরেশন (ডিএসসিসি) উপনির্বাচনে মেয়র পদে আওয়ামী লীগ মনোনীত প্রার্থী আতিকুল ইসলামসহ পাঁচ প্রার্থীর মনোনয়নপত্র বৈধ ঘোষণা করেছে নির্বাচন কমিশন (ইসি)। এদিকে ঋণখেলাপির অভিযোগে জাতীয় পার্টি মনোনীত মেয়র প্রার্থী ব্যান্ডশিল্পী শাফিন আহমেদের মনোনয়ন বাতিল করেছে কমিশন। গতকাল শনিবার প্রার্থীদের মনোনয়নপত্র যাচাই-বাছাই শেষে পাঁচ প্রার্থীর মনোনয়নপত্র বৈধ এবং শাফিনের মনোনয়ন বাতিল ঘোষণা করেন এ নির্বাচনে রিটার্নিং কর্মকর্তা ও ইসি সচিবালয়ের যুগ্ম সচিব আবুল কাশেম। আতিকুল ছাড়া বৈধ প্রার্থীরা হলেন- ন্যাশনাল পিপলস পার্টির (এনপিপি) আনিসুর রহমান দেওয়ান, জাতীয়তাবাদী গণতান্ত্রিক আন্দোলনের (এনডিএম) ববি হাজ্জাজ, প্রগতিশীল গণতান্ত্রিক দলের (পিডিপি) শাহীন খান ও স্বতন্ত্র প্রার্থী আব্দুর রহিম। মেয়র পদে উপনির্বাচনে লড়তে ২৬ জন প্রার্থী মনোনয়নপত্র সংগ্রহ করলেও জমা দিয়েছিলেন মাত্র ৬ জন। ঢাকা উত্তর সিটি কর্পোরেশনের মেয়র পদে উপনির্বাচন আগামী ২৮ ফেব্র“য়ারি অনুষ্ঠিত হবে। নির্বাচনে প্রার্থীদের মনোনয়ন দাখিলের শেষ দিন ছিল ৩০ জানুয়ারি ও প্রত্যাহার ৯ ফেব্র“য়ারি। মেয়র আনিসুল হক মারা যাওয়ায় ডিএনসিসির মেয়র পদে উপ-নির্বাচন অনুষ্ঠিত হচ্ছে। একই দিন ঢাকা উত্তর ও দক্ষিণ সিটি কর্পোরেশনে নবসংযুক্ত ৩৬টি ওয়ার্ডে কাউন্সিলর ও সংরক্ষিত মহিলা কাউন্সিলর পদেও নির্বাচন অনুষ্ঠিত হবে।

আজ কুষ্টিয়ায় বাংলাদেশ হার্ট রিসার্চ এসোসিয়েশনের আলোচনা সভা

বাংলাদেশ হার্ট রিসার্চ এসোসিয়েশনের উদ্যেগে আজ রবিবার কুষ্টিয়ায় “আকস্মিক হৃদরোগে মৃত্যু” শীর্ষক এক আলোচনা সভা অনুষ্ঠিত হবে। কুষ্টিয়া ডায়াবেটিক সমিতি ও মুজিবুর রহমান মেমোরিয়াল ডায়াবেটিক হাসপাতালের সহযোগীতার সকাল ১০ টায় হাসপাতালের অডিটোরিয়ামে এ অনুষ্ঠান হবে। টেলিকনফারেন্সে মাধ্যমে অনুষ্ঠানের উদ্বোধন করবেন বঙ্গবন্ধু পরিষদের কেন্দ্রিয় সাধারণ সম্পদক এবং প্রধানমন্ত্রীর সাবেক রাজনৈতিক উপদেষ্টা ডা.এস এ মালেক। অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথির বক্তব্য রাখবেন প্রখ্যাত হৃদরোগ বিশেষজ্ঞ ও সার্জন প্রফেসর ড.এস আর খান। প্রধান বক্তা থাকবেন কুষ্টিয়া মেডিকেল কলেজের অধ্যক্ষ ডাঃ এসএম মুসতানজিদ। বিশেষ অতিথি থাকবেন এশিয়ান কম্পিউটিং কাউন্সিলের সাবেক চেয়ারম্যান আব্দুল্লাহ এইচ কাফী, বিএমএ কুষ্টিয়া শাখার সাধারণ সম্পাদক ডাঃ আমিনুল হক রতন, কুষ্টিয়া মেডিকেল কলেজের সহকারী অধ্যাপক ডাঃ নাসিমুল বারী বাপ্পী, ডাঃ লিজা রতন ম্যাটস এর অধ্যক্ষ ডাঃ আসমা জাহান লিজা। উক্ত অনুষ্ঠানে সকলকে উপস্থিত থাকার আহবান জানিয়েছেন বাংলাদেশ হার্ট রিসার্চ এসোসিয়েশনের জেলা সভাপতি ও কেন্দ্রিয় যুগ্ম সম্পাদক এবং কুষ্টিয়া ডায়াবেটিক সমিতির সভাপতি মতিউর রহমান লাল্টু ও কুষ্টিয়া ডায়াবেটিক সমিতির সাধারণ সম্পাদক মিজানুর রহমান। সংবাদ বিজ্ঞপ্তি

কুষ্টিয়ায় এসএসসি পরীক্ষা

দিনের পরীক্ষা রাতে দিল রিকি

নিজ সংবাদ ॥ শনিবার সকাল দশটা থেকে শুরু হয় এসএসসি ও সমমান পরীক্ষা। প্রথম দিনে ছিল বাংলা প্রথম পত্র। সব পরীক্ষার্থী সকাল দশটা থেকে দুপুর একটা পর্যন্ত টানা পরীক্ষা দেয়। তবে ব্যাতিক্রম ছিল শুধুমাত্র রিকি হাওলাদার। খ্রিষ্টান সম্প্রদায়ের এ শিক্ষার্থীর পরীক্ষা শুরু হয় সন্ধ্যা ৬ থেকে। শেষ হয় রাত নয়টায়।

রিকি কুষ্টিয়ার কুমারখালী উপজেলার পারফেক্ট ইংলিশ ভার্সন স্কুলের এসএসসি বিজ্ঞান বিভাগের এসএসসি পরীক্ষার্থী। তার রোল নম্বরঃ ১১১৩৫২, রেজি নংঃ ১৫১৩৬০৪৫২২। কুমারখালী এমএন হাইস্কুল কেন্দ্রে সে পরীক্ষা দিচ্ছে।

অন্যান্য পরীক্ষার্থীদের মতো কুষ্টিয়ার খ্রিষ্টান ধর্মাবলী ‘সেভেন্থ ডে এডভান্টিস্ট’ সম্প্রদায়ের পরীক্ষার্থী রিকি হালদারও পরীক্ষা দিতে আসে সকাল ৯টার দিকে। যথারীতি সকাল দশটায় অন্য পরীক্ষার্থীরা পরীক্ষা দেওয়া শুরু করলেও রিকি অপেক্ষায় থাকে সন্ধ্যা ৬টার। বেলা ১টার সময় বাংলা ১ম পত্র পরীক্ষা দিয়ে অন্য পরীক্ষার্থীরা কেন্দ্র থেকে বের হয়ে গেলেও কেন্দ্রে অবস্থান করতে থাকে রিকি। তার পরীক্ষা হয় সন্ধ্যা ৬টায়। দুপুরে রিকি কেন্দ্রে খাওয়া-দাওয়া করেন। বাড়ি থেকে সাথে করে খাবার নিয়ে যান তিনি।

ধর্মীয় বিধানে শনিবার কোন প্রকার লেখালেখি করা যাবে না এমন নিষেধাজ্ঞা থাকায় শনিবার সকালের পরীক্ষার পরীবর্তে সূর্যাস্থের পর পরীক্ষা দেওয়ার জন্য যশোর শিক্ষা বোর্ডে আবেদন করে রিকি হালদার। যশোর শিক্ষা বোর্ড সেটার অনুমতি দিয়ে ২, ৯, ১৬ ও ২৩ ফেব্র“য়ারি শনিবারের বাংলা প্রথম পত্র, গণিত, রসায়ন ও উচ্চতর গণিত পরীক্ষা দিনের পরিবর্তে সূর্যাস্থের পর দেওয়ার অনুমতি দেন রিকিকে।

রিকি হালদার জানান, ধর্মীয় বাধার কারনে শনিবারের পরীক্ষাটা সকাল ১০টার পরিবর্তে সূর্যাস্থের পর সন্ধ্যা ৬টা থেকে শুরু হয়।  ‘সেভেন্থ ডে এডভান্টিস্ট’ সম্প্রদায়ের যারা শিক্ষার্থী আছেন তারা একই পন্থায় পরীক্ষায় দিচ্ছেন। শনিবার ধর্মীয় উপাসনা থাকে। এদিন পড়াশোনা, লেখালেখি,  খেলাধুলা, কেনাকাটাসহ সকল প্রকার কাজ থেকে বিরত থাকতে হয়। সম্প্রদায়ের সকলেই এই রীতি মেনেই পরীক্ষা দেয়। তিনি আরও বলেন,‘আমাকে এই সুযোগটা দেওয়ার জন্য যশোর শিক্ষা বোর্ডকে ধন্যবাদ দিতে চাই।’ রাতে কুমারখালী এমএন হাই স্কুলের প্রধান শিক্ষক ও কেন্দ্র সচিব ফিরোজ মহম্মদ বাশার বলেন, ৩০ জানুয়ারি পাঠানো যশোর শিক্ষা বোর্ডের নির্দেশনা অনুযায়ী প্রয়োজনীয় ব্যবস্থা গ্রহন করে রিকির পরীক্ষা নেয়া হচ্ছে। রিকি সবার মতোই সকালে পরীক্ষা কেন্দ্রে এসেছে। সকলে পরীক্ষা দিয়ে সবাই চলে গেলেও রিকিকে কেন্দ্রের আলাদা কক্ষে রাখা হয়। সে সারাদিন কক্ষ থেকে বের হতে পারেনি। খাওয়া-দাওয়াসহ সব কিছু সে ওই কক্ষে বসেই করবে। সন্ধ্যা ছয়টায় তার পরীক্ষা শুরু হয়েছে। রাত ৯টায় শেষ হয়। রিকির বাবা রিপন হালদার বলেন, বেসরকারি সংস্থায় চাকুরির সুবাদে তারা কুমারখালীতে বসবাস করেন। বরিশাল জেলার আগৈলঝাড়া উপজেলায় তাদের বাড়ি। তিনিও রাতে পরীক্ষা দিয়েছিলেন। তাদের মতের অনুসারীর সংখ্যা খুবই কম। ঢাকাতেও এ ধরনের পরীক্ষার্থী আছে।

“বিশ্ববিদ্যালয় ব্যবস্থাপনার কার্যকারিতা” শীর্ষক কর্মশালায় ইবি ভিসি ড. রাশিদ আসকারী

কর্মকর্তাদের মধ্যে নৈতিকতা ও পেশাদারিত্ব থাকতে হবে

কুষ্টিয়া ইসলামী বিশ্ববিদ্যালয়ের ভাইস চ্যান্সেলর প্রফেসর ড. মোঃ হারুন-উর-রশিদ আসকারী (ড. রাশিদ আসকারী) বলেছেন, কর্মকর্তাদের মধ্যে নৈতিকতা  ও পেশাদারিত্ব থাকতে হবে। এ দু’টি বিষয় যদি একজন কর্মকর্তার মধ্যে না থাকে তাহলে তিনি জীবনে প্রতিষ্ঠিত হতে পারবেন না। বিশ্বায়নের এই যুগে তিনি সকল ক্ষেত্রেই পিছিয়ে যাবে। তিনি বলেন, যে কোন প্রেক্ষাপটে আমরা কর্মজীবনে যে যার জায়গার এসেছি। তবে আমাদের মনে রাখতে হবে, আমরা পুথিঁগত বিদ্যা অর্জন করে এসেছি, অনেকেই দক্ষতা অর্জন করে আসেনি। এজন্য আমাদের মধ্যে জানা ও শেখার আগ্রহ থাকতে হবে। কারণ বিশ্বের সাথে তাল মিলিয়ে বাংলাদেশ যেভাবে এগিয়ে চলেছে, এ ক্ষেত্রে আমাদের জানা ও শেখার আগ্রহ সৃষ্টি করতে না পারলে আমরা প্রতিটি ক্ষেত্রে ছিটকে পড়বো। ড. রাশিদ আসকারী বলেন, প্রত্যেক কর্মকর্তার মধ্যে দেশপ্রেম থাকতে হবে। প্রধানমন্ত্রী জননেত্রী শেখ হাসিনা সূর্যদয় থেকে মধ্যরাত পর্যন্ত নিজেকে উদার করে দিয়েছেন দেশের জন্য। সেখানে আমাদের বসে থাকার কোন সুযোগ নেই। তাই দেশের উন্নয়নে নিজ নিজ অবস্থান থেকে সততা ও দক্ষতার সাথে কাজ করতে হবে। গতকাল শনিবার সকালে আইকিউএসি’র সেমিনার কক্ষে দিনব্যাপী “বিশ্ববিদ্যালয় ব্যবস্থাপনার কার্যকারিতা” শীর্ষক সেমিনারের উদ্বোধনকালে প্রধান অতিথির বক্তৃতায় ভাইস চ্যান্সেলর প্রফেসর ড. মোঃ হারুন-উর-রশিদ আসকারী এসব কথা বলেন। অনুষ্ঠানে বিশেষ অতিথির বক্তৃতায় প্রো-ভাইস চ্যান্সেলর প্রফেসর ড. মোঃ শাহিনুর রহমান বলেন, প্রধানমন্ত্রী জননেত্রী শেখ হাসিনার যোগ্য নেতৃত্বে বাংলাদেশ উন্নয়নের মহাসড়কে চলমান। জাতীয় এ উন্নয়নের সাথে তাল মিলিয়ে আমাদেরকেও কাজ করে যেতে হবে। তিনি বলেন, একজন কর্মকর্তা হিসেবে সময়ের প্রতি গুরুত্ব দিতে হবে।  যে কোন কাজ আমি সঠিক সময়ের মধ্যে করতে পারছি কি না, সে দিকে লক্ষ্য রাখতে না পারলে কাজে পিছিয়ে যেতে হবে। তিনি বলেন, প্রতিটি কর্মকর্তাকে প্রযুক্তি ব্যবহারের জ্ঞান অর্জন করতে হবে। তা না হলে তথ্য, প্রযুক্তির এ যুগে নিজেকে ধরে রাখা কঠিন হয়ে পরবে। আইকিউএসি’র পরিচালক প্রফেসর ড. কে.এম আব্দুস ছোবহানের সভাপতিত্বে উদ্বোধনী অনুষ্ঠানে মুলপ্রবন্ধ উপস্থাপন করেন বাংলাদেশ লোকপ্রশাসন প্রশিক্ষণ কেন্দ্রের উপ-পরিচালক ও এলজিইডির প্রশিক্ষক ড. মোঃ জহুরুল ইসলাম। অনুষ্ঠানে বক্তব্য রাখেন রেজিস্ট্রার (ভার:) এস এম আব্দুল লতিফ। দিনব্যাপী এ কর্মশালায় বিশ্ববিদ্যালয়ের প্রতিটি অফিসের বিভিন্ন পর্যায়ের ৫০জন কর্মকর্তা  অংশগ্রহণ করেন। সংবাদ বিজ্ঞপ্তি

রাজনৈতিক নেতৃবৃন্দের সম্মানে প্রধানমন্ত্রীর চা চক্র

ঢাকা অফিস ॥ প্রধানমন্ত্রী ও আওয়ামী লীগ সভাপতি শেখ হাসিনা বিগত নির্বাচনের পূর্বে রাজনৈতিক সংলাপে অংশগ্রহণকারী বিভিন্ন রাজনৈতিক দল, জোট এবং সংগঠনের নেতৃবৃন্দের সম্মানে এক চা চক্রের আয়োজন করেন। গতকাল শনিবার বিকেলে গণভবনের দক্ষিণ লনের সবুজ চত্বরে আয়োজিত এই চা চক্রে আওয়ামী লীগসহ বিভিন্ন রাজনৈতিক দলের শীর্ষস্থানীয় নেতৃবৃন্দ অংশগ্রহণ করেন। যার মধ্যে জাতীয় পার্টি, ওয়ার্কার্স পার্টি, জাতীয় সমাজতান্ত্রিক দল (জাসদ-ইনু) জাপা (মঞ্জু), জাসদ (আম্বিয়া), বাংলাদেশের সমাজতান্ত্রিক দল (বাসদ), গণতন্ত্রী পার্টি, সাম্যবাদী দল, বিকল্পধারা বাংলাদেশ, ইসলামী ঐক্যজোট, তরিকত ফেডারেশন এবং বাংলাদেশ জাতীয়তাবাদি ফ্রন্ট রয়েছে। প্রধানমন্ত্রী বিকেল ৪টা ১০ মিনিটে চা চক্রের অনুষ্ঠান স্থলে আসেন এবং বিভিন্ন রাজনৈতিক নেতৃবৃন্দের সঙ্গে শুভেচ্ছা বিনিময় করেন। তিনি বিভিন্ন টেবিলে ঘুরে ঘুরে রাজনৈতিক নেতৃবৃন্দের সঙ্গে কথা বলেন এবং তাঁদের সঙ্গে কুশল বিনিময় করেন। জাতীয় সংসদের স্পিকার ড. শিরীন শারমিন চৌধুরী, জ্যেষ্ঠ আওয়ামী লীগ নেতা আমির হোসেন আমু, বেগম মতিয়া চৌধুরী, ইঞ্জিনিয়ার মোশাররফ হোসেন, শেখ ফজলুল করিম সেলিম, নুরুল ইসলাম নাহিদ, ওবায়দুল কাদের, মুহম্মদ ফারুক খান, আব্দুল মতিন খসরু, ড. আব্দুর রাজ্জাক, ড. হাছান মাহমুদ, শিল্পমন্ত্রী নুরুল মজিদ মাহমুদ হুমায়ুন, গৃহায়ণ ও গণপূর্ত মন্ত্রী শম রেজাউল করিম, শিক্ষামন্ত্রী ডা. দিপু মনি, জাতীয় পার্টির জ্যেষ্ঠ নেতা এবং জাতীয় সংসদের সাবেক বিরোধী দলীয় নেতা বেগম রওশন এরশাদ, জাতীয় পার্টির কো-চেয়ারম্যান জিএম কাদের, মহাসচিব মশিউর রহমান রাঙ্গা, রুহুল আমিন হাওলাদার, জিয়াউদ্দিন আহমেদ বাবলু, আনিসুল ইসলাম মাহমুদ, মুজিবুল হক চুন্নু, সুনীল শুভ রায়, জাপা (মঞ্জু) সভাপতি আনোয়ার হোসেন মঞ্জু, জাসদ সভাপতি হাসানুল হক ইনু এবং সাধারণ সম্পাদক শিরীন আখতার, জাসদ (আম্বিয়া) নেতা মইনুদ্দিন খান বাদল এবং নাজমুল হক প্রধান, ওয়ার্কার্স পার্টির সভাপতি রাশেদ খান মেনন এবং সাধারণ সম্পাদক ফজলে হোসেন বাদশা চা চক্রে যোগদান করেন। এছাড়া বিকল্পধারার সভাপতি ডা. বদরুদ্দোজা চৌধুরী, সাধারণ সম্পাদক মেজর (অব.) এম এ মান্নান, মাহী বি. চৌধুরী, শমসের মোবিন চৌধুরী, ইসলামী ঐক্যজোট সভাপতি মিজবাহুর রহমান চৌধুরী, তরিকত ফেডারেশন সভাপতি নজিবুল বশর মাইজভান্ডারি, সামাবাদী দল সভাপতি দিলীপ বড়–য়া, বিএনএফ সভাপতি ব্যারিষ্টার নাজমুল হুদা, আওয়ামী লীগ, ১৪ দলীয় জোট নেতৃবৃন্দ, প্রধানমন্ত্রীর উপদেষ্টাগণ এবং প্রধানমন্ত্রীর কার্যালয়ের উর্ধ্বতন কর্মকর্তাবৃন্দ অনুষ্ঠানে উপস্থিত ছিলেন। এই অনুষ্ঠান উপলক্ষে গণভবনের দক্ষিণ লনের সবুজ চত্বর আবহমান গ্রাম বাংলার সাধারণ বাড়ি-ঘরের আদলে সাজানো হয়। কুড়ে ঘরের সঙ্গে বসার জন্য মাদুর ও মোড়া পাতা হয়। খাবার পরিবেশনের জন্য মাটির পাত্র ব্যবহার করা হয় এবং এ সময় দেশাত্ববোধক সঙ্গীত বাজানো হয়। অতিথি আপ্যায়নেও বিশেষত্ব হিসেবে ছিল ভাপা, চিতই, পাটিসাপ্টা এবং পুলিসহ হরেকরকম দেশী পিঠা, চটপটি, ফুচকা, মুড়ি, মোয়া, নাড়– ও জিলেপি ছাড়াও মোগালাই খাবার হিসেবে ছিল কাবাব এবং নান রুটি। পরে আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক ওবায়দুল কাদের প্রধানমন্ত্রী এবং আওয়ামী লীগ সভাপতি শেখ হাসিনার পক্ষে চা চক্রে যোগদানকারি বিভিন্ন রাজনৈতিক নেতৃন্দকে ধন্যবাদ জানান। তিনি বলেন, ‘আজকের অনুষ্ঠানে আপনারা স্বতস্ফূর্তভাবে অংশগ্রহণ করেছেন এবং আপনাদের উপস্থিতি খুবই উৎসাহব্যঞ্জক ।’ সড়ক পরিবহন ও সেতু মন্ত্রী কাদের বলেন, ‘আমরা শুধু কুশলই বিনিময় করিনি, আমরা শীতের পিঠা খেতে খেতে বিভিন্ন বিষয়ে বিশেষ করে রাজনৈতিক বিষয়ে পরস্পরের সঙ্গে আমাদের অভিমত শেয়ার করেছি।’ প্রধানমন্ত্রীর চা চক্রের আয়োজন সম্পর্কে আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক বলেন, ‘আমি আশা করি প্রধানমন্ত্রীর এই শুভ উদ্যোগে আপনারা সকলেই স্বাচ্ছন্দ্য বোধ করেছেন।’ কাদের বলেন, গত ৩০ ডিসেম্বরের নির্বাচনের পূর্বে বিভিন্ন রাজনৈতিক দলের নেতৃবৃন্দ এই গণভবনে প্রধানমন্ত্রী আয়োজিত সংলাপের মাধ্যমে খোলামেলা আলোচনায় অংশগ্রহণ করেন। তিনি বলেন, ‘নির্বাচন শেষে আমরা সহযোগিতা চেয়েছি এবং প্রধানমন্ত্রী নিজেও নির্বাচনের সময় জাতির কাছে দেয়া ওয়াদা অক্ষরে অক্ষরে পূরণ করতে চান।’ ‘আমাদের সকল নেতৃবৃন্দের পক্ষে আমি এজন্য আপনাদের সবার কাছে সব রকম সহযোগিতা কামনা করছি, ’যোগ করেন তিনি। প্রধানমন্ত্রীর কার্যালয়ের একটি জানায়, প্রধানমন্ত্রী তাঁর চা চক্রে ৫৪টি রাজনৈতিক দলের নেতৃবৃন্দকে আমন্ত্রণ জানান। বিএনপি নেতৃত্বাধীন জাতীয় ঐক্যফ্রন্ট নেতৃবৃন্দ ব্যতীত সকল রাজৗনতিক দলই চা চক্রে যোগদান করে। নির্বাচনের পূর্বে প্রধানমন্ত্রী গণভবনে নভেম্বরের ১ থেকে ৭ তারিখ পর্যন্ত রাজনৈতিক দলগুলোর সঙ্গে সংলাপ করেন।

সঙ্গীতবিষয়ক প্রতিষ্ঠান করার স্বপ্ন ঝিলিকের

বিনোদন বাজার ॥ কণ্ঠশিল্পী ঝিলিক তার বাবাকে সঙ্গে নিয়ে একটি সঙ্গীতবিষয়ক প্রতিষ্ঠান গড়ার স্বপ্ন দেখছেন। ঝিলিকের বাবা আব্দুল জলিলও একজন সঙ্গীতশিল্পী। ঝিলিক বলেন, আমার বাবা একজন সঙ্গীতশিল্পী, আমিও পেশাদার একজন সঙ্গীতশিল্পী। তাই আমাদের সামর্থ্যরে মধ্যে সঙ্গীতবিষয়ক একটি প্রতিষ্ঠান গড়ার স্বপ্ন দেখছি। যেখানে আমি আর আমার বাবা যতটুকুই পারি সঙ্গীত বিষয়ে নিজেদের সবটুকু উজাড় করে দিয়ে আগ্রহীদের শিক্ষা দেব। সঙ্গীতকে নিয়ে আপাতত এটাই আমার অনেক বড় স্বপ্ন। চেষ্টা করছি দ্রুত এই ব্যাপারে পদক্ষেপ নেয়ার। সবার দোয়া, ভালোবাসা ও সহযোগিতা থাকলে নিশ্চয়ই শিগগিরই আমার এই স্বপ্ন পূরণ হবে। আমি মনে করি এ দেশের গানপ্রেমী শ্রোতা-দর্শক আমাকে ভালোবাসে। তাই আমারও উচিত দেশের জন্য, দেশের মানুষের জন্য কিছু করা। এদিকে বর্তমানে স্টেজ মৌসুমে স্টেজ শো নিয়ে বেশ ব্যস্ত রয়েছেন ঝিলিক। আগামী ২ ফেব্রুয়ারি গাজীপুর, ৪ ফেব্রুয়ারি ঢাকার সেনা মালঞ্চ ও লা মেরিডিয়ানে, ৮ ফেব্রুয়ারি কক্সবাজার, ১২ ফেব্রুয়ারি গাজীপুরে স্টেজ শোয়ে সঙ্গীত পরিবেশন করবেন ঝিলিক। এদিকে সম্প্রতি সুবীর নন্দীর সুরে একটি গানে কণ্ঠ দিয়েছেন ঝিলিক। সঙ্গীতায়োজন করেছেন উজ্জ্বল সিনহা। আসছে ভালোবাসা দিবসে গানটি প্রকাশ হওয়ার সম্ভাবনা রয়েছে।

ফের হলিউডে প্রিয়াঙ্কা

বিনোদন বাজার ॥ নতুন কাজের খবর দিলেন বলিউড অভিনেত্রী প্রিয়াঙ্কা চোপড়া। এবার আধ্যাত্মিক নেত্রী মা আনন্দ শীলার ভূমিকায় হলিউড সিনেমায় অভিনয় করবেন তিনি। সিনেমাটির পরিচালনা করবেন অস্কারজয়ী পরিচালক বেরি লেভিনসন। সম্প্রতি যুক্তরাষ্ট্রে দ্য এলেন ডিজেনারেসের শোতে গিয়ে এমন ঘোষণা দিয়েছেন প্রিয়াঙ্কা। নিজের পরবর্তী হলিউড সিনেমা ‘ইজ নট ইট রোমান্টিক’ এর প্রচারের সময় এসব কথা বলেন তিনি। সমালোচিত আধ্যাত্মিক গুরু রজনীশ ওরফে ওশোর শিষ্য মা আনন্দ শিলার ভূমিকায় তিনি অভিনয় করবেন। প্রিয়াঙ্কা বলেন, আমি বেরি লেভিনসনের সঙ্গে একটি সিনেমায় কাজ করতে চলেছি। উনি একজন অসামান্য আমেরিকান পরিচালক। আমরা এই সিনেমাটি শীলার দৃষ্টিভঙ্গি থেকে নির্মাণ করব। মা আনন্দ শিলার ভূমিকায় অভিনয়টি হবে হলিউডে প্রিয়াঙ্কার চতুর্থ নম্বর কাজ।

আবার ‘দিলবার দিলবারে’ নোরা

বিনোদন বাজার ॥ ‘দিলবার দিলবার’ গানে কোমর দুলিয়ে বিশ্বব্যাপী বেশ পরিচিতি লাভ করেছেন নোরা ফাতেহী। শুধু তাই নয়, এ গানের মাধ্যমে হাজারো তরুণের হৃদয়ও জয় করেছেন তিনি। এবার নির্মাতা-কোরিওগ্রাফার রেমো ডি সুজার নাচের রিয়েলিটি শো ‘ড্যান্স প্লাস ফোর’-এর গ্র্যান্ড ফিনালেতে একই গানে নাচলেন নোরা। আর যথারীতি নোরার সেই উষ্ণ ও আবেদনময় নাচ ফের অনলাইনে ভাইরাল।ড্যান্স প্লাস ফোরে দিলবার গানে নোরার নেশাতুর অঙ্গভঙ্গি ও খুনে নাচে দিশেহারা ভক্তকূল। মজার ব্যাপার হলো, পরিচালক রেমো ডি সুজার আগামী নাচ নির্ভর ফ্র্যাঞ্চাইজি এবিসিডি’র তৃতীয় কিস্তিতে থাকছেন নোরা ফাতেহী। এরইমধ্যে এই ছবির টিমের সঙ্গে প্রস্তুতি শুরু করেছেন তিনি।১৯৯৯ সালে মুক্তি পেয়েছিল বলিউড সিনেমা ‘সির্ফ তুম’। ওই ছবিতে সুস্মিতা সেন ও সঞ্জয় কাপুরের ‘দিলবার’ গানটি বেশ জনপ্রিয় হয়েছিল। গতবছর জন আব্রাহামের ‘সত্যমেভ জয়তে’ সিনেমায় সেই গানের রিমেক ভার্সনে নাচেন মরক্কো বংশোদ্ভুত হালের বলিউড সেনসেশন নোরা ফাতেহী।২০১৪ সালে রোর:টাইগার্স অব দ্য সুন্দরবন সিনেমায় অভিনয় করে প্রথম বলিউডে পা রাখেন তিনি। কয়েকটি তেলেগু সিনেমা যেমন টেম্পার, বাহুবলী, কিক ২ সিনেমায় আইটেম গানে নাচ করে তিনি জনপ্রিয়তা অর্জন করেন। নোরা বিগ বস-এর নবম সিজনের একজন প্রতিযোগী ছিলেন এবং ৮৪তম দিনে তিনি বিগ বস থেকে বিদায় নেন।

‘পর্নস্টার নাতাশা মোদির চেয়েও জনপ্রিয়’

বিনোদন বাজার ॥ বলিউডের খ্যাতনামা পরিচালক ফারহান আক্তারের দাবি, ভারতীয় প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদির চেয়ে পর্নস্টার নাতাশা মালকোভাই বেশি জনপ্রিয়। ভারতীয় সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে ভাইরাল হয়েছে তার এই মন্তব্য। মন্তব্যের সমর্থনে প্রমাণও দিয়েছেন তিনি। গুগল ট্রেন্ডের পরিসংখ্যান তুলে ধরে তিনি জানান, পর্নস্টার নাতাশা মালকোভাকে খোঁজ করার প্রবণতা ২০১৮ সালে বেড়ে সূচকের পয়েন্ট ১০০ ছুঁয়েছে।একই সূচকে ২০১৮ সালে প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদির জনপ্রিয়তার পারদ কমে নেমে এসেছে ২৫ পয়েন্টে।নাতাশা মালকোভা মার্কিন জনপ্রিয় পর্নস্টার। সাধারণত হার্ডকোর পর্নোগ্রাফিতে বেশি দেখা যায় তাকে। যুক্তরাষ্ট্রের ক্যালিফোর্নিয়ায় জন্ম নেন তিনি।১৯৯১ সালে জন্ম নেয়া নাতাশা মালকোভা আরেক জনপ্রিয় মার্কিন পর্নস্টার মিয়া মালকোভার স্কুলবান্ধবী। ২০১২ সালে মিয়ার হাত ধরে পর্ন জগতে প্রবেশ করেন নাতাশা। বর্তমানে তিনি মডেলিংও করছেন।

সাম্প্রতিক সময়ে ভারতে জনপ্রিয়তার শীর্ষে উঠেছেন নাতাশা। বর্তমানে বেশকয়েকটি সিনেমায়ও কাজ করছেন এই সুন্দরী।

অমিতাভের ছবি দেখে এ কী করলেন রেখা!

বিনোদন বাজার ॥ প্রথমে গভীর প্রেম পরে ঘৃণায় বিচ্ছিন্নতা অর্থাৎ ‘লাভ এন্ড হেট রিলেশনশিপ’ যাকে বলা হয় তেমন উদাহরণ বলিউডে কয়েকটি রয়েছে। তম্মধ্যে অন্যতম বলি শাহেনশাহ অমিতাভ বচ্চন এবং উমরাওজান রেখার সম্পর্ক।অমিতাভ বচ্চন এবং রেখা এখনও একে অপরের মুখোমুখি হলে দ্রুত সড়ে পড়েন।গত সোমবার এক ক্যালেন্ডার উন্মোচন অনুষ্ঠানে হাজির হন বলি অভিনেত্রী রেখা।ডাবু রতœানির ওই ক্যালেন্ডারে ছিল সব বলি সেলিব্রেটির ছবি। সেখানে স্থান পেয়েছিলেন অমিতাভ বচ্চনও।ওসব ক্যালেন্ডার প্রচ্ছদের সামনে দাঁড়িয়ে ছবি তুলতে থাকেন রেখা। আচমকাই অমিতাভ বচ্চনের ছবির ওপর রেখার চোখ পড়লে মুহূর্তেই সেখান থেকে ছিটকে সড়ে যান তিনি। অমিতাভের ছবির সঙ্গে রেখার এমন প্রতিক্রিয়ার ভিডিও সামাজিক যোগাযোগমাধ্যমে এখন ভাইরাল। সত্তরের দশকে একাধিক ব্যবসাসফল ছবির তারকা জুটি অমিতাভ-রেখা। সেসময় বাস্তব জীবনে বিবাহিত অমিতাভের সঙ্গে রেখার প্রেমের খবর ছড়িয়ে পড়লে তোলপাড় হয় বলিউডসহ বিভিন্ন গণমাধ্যম। ১৯৮১ সালের ত্রিভুজ প্রেমের ছবি ‘সিলসিলা’ পর আর কোনো ছবিতেই অমিতাভ-রেখা জুটিকে দেখা যায়নি। এরপর ৩৩ বছর তারা কখনও কুশল বিনিময়ও করেন নি। ২০১৪ সালে মুম্বাইয়ের এক অনুষ্ঠানে স্ত্রী জয়াসহ প্রথম একে অপরকে অভিনন্দন জানাতে দেখা যায়। তারপর আবার শুরু হয় নিরবতা। তবে রেখার সঙ্গে অমিতাভের সম্পর্ক যেমনই হোক, পুত্রবধূ ঐশ্বরিয়া বচ্চন রেখাকে ‘রেখা মা’ বলে সম্বোধন করেন।

বিশ্বের প্রথম হিজাবী সুপার মডেল হালিমা এ্যডেন

বিনোদন বাজার ॥ বিশ্বে প্রথম হিজাব পরা কোনো সুপার মডেল হওয়ার সৌভাগ্য অর্জন করেছেন সোমালিয়ার বংশোদ্ভুত যুক্তরাষ্ট্রের প্রবাসী হালিমা এ্যডেন। তিনিই বিশ্বের প্রথম কোনো তরুণী, যে হিজাব পরে ২০১৬ সালে সুন্দরী প্রতিযোগীতা মিস মিনিসোটা শিরোপা জয় করেন। মাত্র ১৯ বছর বয়সী হালিমা প্রতিযোগীতার সুইমিং কস্টিউম পর্বে বুরকিনি পরেই অংশ নিয়ে ইতিহাসে নতুন অধ্যায় সৃষ্টি করেছিলেন। এতো কম বয়সে এমন সাহসী পদক্ষেপে আন্তর্জাতিক অঙ্গনে প্রশংসিত হয়েছিলেন হালিমা। আফ্রিকার কেনিয়ায় জন্ম নেয়া হালিমার ছোটবেলা কেটেছে জাতিসংঘের শরণার্থী শিবিরে। ৭ বছর বয়সে পরিবারের সঙ্গে হালিমা যুক্তরাষ্ট্রে চলে আসেন। তারপর থেকে সেখানেই স্থায়ীভাবে বসবাস গড়ে তোলেন তারা। শরণার্থী শিবিরে কাটানো দিনগুলোকে এখনো আনন্দের সঙ্গেই স্মরণ করেন তিনি। আফ্রিকার বিভিন্ন অঞ্চল থেকে জড়ো হওয়া শরণার্থী শিবিরের নানা মানুষের সঙ্গে পরিচয় হয়েছিল তার। বর্তমানে ফ্যাশন দুনিয়ার বড় বড় প্রতিষ্ঠানের মডেল হিসেবে কাজ করছেন হালিমা। রয়টার্সকে দেয়া এক সাক্ষাৎকারে হালিমা বলেন, ‘আমি প্রতিদিনই হিজাব পরিধান করি। আর এটাকে বহন করেই আমি আমার পরিচয় সৃষ্টি করতে চাই।’ নিজের এ সাফল্যে গর্বিত ও আনন্দিত তিনি। নিজের বৈচিত্রতায় একজন প্রতিষ্ঠিত মডেল হয়ে মুসলিম বিশ্বের তরুণীদের জন্য দৃষ্টান্ত গড়তে চান হালিমা।

রিয়ালে রোনালদোর অভাব বোধ করছেন কোর্তোয়া

ক্রীড়া প্রতিবেদক ॥  রিয়াল মাদ্রিদে ক্রিস্তিয়ানো রোনালদোর অভাব অনুভূত হচ্ছে বলে মনে করেন দলটির গোলরক্ষক থিবো কোর্তোয়া। তবে ক্লাবের সর্বকালের সেরা গোলদাতাকে নিয়ে ড্রেসিং রুমে তেমন কোনো আলোচনা হয় না বলে দাবি করেছেন বেলজিয়ামের এই খেলোয়াড়। গত বছরের জুলাইয়ে সান্তিয়াগো বের্নাবেউ ছেড়ে ইউভেন্তুসে যোগ দেন সব প্রতিযোগিতা মিলে রিয়ালের হয়ে সর্বোচ্চ ৪৫০ গোল করা রোনালদো। মাদ্রিদে কাটানো নয় বছরে চারটি চ্যাম্পিয়ন্স লিগ ও দুটি লা লিগাসহ অসংখ্য শিরোপা জেতেন পাঁচবারের বর্ষসেরা ফুটবলার। চলতি মৌসুমে বার বার পথ হারানো রিয়াল লা লিগায় পয়েন্ট তালিকার শীর্ষে থাকা বার্সেলোনার চেয়ে ১০ পয়েন্ট পিছিয়ে আছে। বেলজিয়ামের একটি পত্রিকাকে দেওয়া এক সাক্ষাৎকারে রোনালদোর প্রসঙ্গে কথা বলেন কোর্তোয়া।“লকার রুমে তাকে নিয়ে কথা হয় না।ৃতবে এমন কিছু ম্যাচ আমরা হেরেছিলাম যেখানে দশটা সুযোগ পেয়েও আমরা গোল করতে পারিনি।”“একই সময়ে সে ইউভেন্তুসের হয়ে দুটি গোল করে। আর এমন সময়ে তার সম্পর্কে কথা হওয়াটা স্বাভাবিক।”চলতি মৌসুমের শুরুতে চেলসি থেকে রিয়ালে আসা রাশিয়া বিশ্বকাপের সেরা গোলরক্ষক কোর্তোয়ার মতে, আক্রমণভাগে করিম বেনজেমা ও গ্যারেথ ঠিকই সর্বোচ্চ চেষ্টা করছেন; কিন্তু রোনালদোর অভাব পূরণ হচ্ছে না।“রোনালদো যদি দল ছাড়ে এবং তার জায়গায় বিশ্ব মানের কোনো ফরোয়ার্ড না আসে তাহলে বছরটা কঠিন কাটবে।” “আপনি আশা করেন যে বেনজেমা বা বেল আরও বেশি গোল করবে। আর আংশিকভাবে তারা তা করেও। গত কয়েক সপ্তাহে আমরা উন্নতি করেছি।”

ফসল বিধ্বংসী ফল আর্মি ওয়্যার্ম পোকা সনাক্ত হয়েছে মেহেরপুরে

নুহু বাঙালী ॥ এই প্রথম ভুট্টাসহ অন্যান্য ফসল বিধ্বংসী ফল আর্মি ওর্য়্যাম পোকার আক্রমন সনাক্ত হয়েছে মেহেরপুরে। কীটনাশক প্রয়োগ করেও মিলছে না সুফল। বিশেষ করে ভুট্টা ক্ষেতে এর আক্রমন বেশি হয়ে থাকে। ধারনা করা হচ্ছে এটি পাশ^বর্তী দেশ ভারত থেকে এসেছে। ভুট্টাসহ ৮০টি ফসলের ক্ষতি করতে পারে আর্মি ওয়্যার্ম। দ্রুত প্রতিরোধ করা না গেলে ক্ষতির মুখে পড়বে অন্যান্য ফসলও বলছে কৃষি বিভাগ। গাংনী উপজেলার সীমান্ত ঘেষা তেঁতুলবাড়িয়া গ্রামের কৃষক স্বপন আলীর ভুট্টা ক্ষেতে দেখা মিলেছে ভয়ানক পোকা ফল আর্মি ওয়্যার্ম। কোন ক্ষেতে আক্রমন শুরু হলে কয়েক দিনেই তা ছড়িয়ে পড়বে পুরো ক্ষেতে। গাছের পাতা থেকে শুরু করে কান্ড পর্যন্ত খেয়ে ফেলছে। যেসব গাছে ইতোমধ্যে আক্রমন করেছে সেই গাছগুলোতে আর ভুট্টা হবে না। এর ফলে লোকসানে পড়বে কৃষক। ফল আর্মি ওয়্যার্র্মের বৈশিষ্ট্য হলো এর মুখের দিকটা ইংরেজী ওআই আকৃতির এবং পিছনের দিকে চারটি কালো ফোটা আছে। যা অন্যান্য ল্যাদা পোকার চেয়ে আলাদা। একটি পরিনত বয়সের আর্মি ওয়্যার্ম অসংখ্য বাচ্চা দিতে পারে। দিনের বেলায় পোকাগুলো গাছের কান্ডের মধ্যে ও মাটিতে অবস্থান করলেও সন্ধ্যার পর থেকে ছড়িয়ে পড়ছে প্রতিটি গাছে। ক্ষেতে পোকার আক্রমন দেখে কীটনাশক দিয়েও কাজ হয়নি, এখন স্বর্না দিয়ে খুঁজে বের করে মেরে ফেলছে ক্ষতিগ্রস্থ কৃষক। দমন করা না গেলে মারত্মক ক্ষতির কারন হয়ে দাড়াবে এই পোকা। কৃষি বিভাগ জানিয়েছে এই পোকাটি আমেরিকা ও কানাডায় অনেক আগেই সনাক্ত হয়েছে। কীটনাশক দিয়ে দমন করা সম্ভব হয়নি। পরবর্তীতে এটি ভারত হয়ে বাংলাদেশে প্রবেশ করছে তাও মেহেরপুরে এটিই প্রথম। এই পোকা দিনে অন্তত ১০০ কিলোমিটার পাড়ি দিতে পারে। এবং দ্রুত বংশ বিস্তার করতে পারে। জেলা কৃষি সম্প্রসারন অধিদপ্তরের হিসেবে ভুট্টা চাষ লাভজনক হওয়ায় জেলায় এবারে ১৫ হাজার হেক্টর জমিতে ভুট্টার চাষ হয়েছে। যা গত বছরের চেয়ে বেশি। কৃষক স্বপন আলী জানান, দিন দশেক আগে আমার ভুট্টা ক্ষেতে পোকার আক্রমন চোখে পড়ে। এই পোকা আগে কখনও দেখিনি। কৃষি বিভাগের মাধ্যমে জানতে পারি এটি ফল আর্মি ওয়ার্ম পোকা। এই পোকা দমনে কয়েক দফা কীটনাশক ছিটিয়েও কোন কাজ হয়নি। ফসল বাচাঁতে সুচ ও স্বর্ণা দিয়ে খুজে বের করে মেরে ফেলছি। এছাড়া আর কোন উপায়ও দেখছি না। কারন চোখের সামনের পুরো ক্ষেতে হষ্ট হয়ে যাবে। মেহেরপুর কৃষি সম্প্রসারন অধিদপ্তরের উপপরিচালক ড. মোঃ আখতারুজ্জামান জানিয়েছেন, সীমান্তবর্তী জেলা হওয়ায় পাশ^বর্তী দেশ ভারত থেকে এটি আমাদের দেশে প্রবেশ করতে পারে। বিধ্বংসী এই পোকাটি ফসলের শতভাগ ক্ষতি করতে পারে। তবে আতংকিত না হয়ে পোকার আক্রমন যদি সানাক্ত করা যায় তাহলে প্রতিরোধ করা যেতে পারে। এই পোকা কীটনাশক দিয়ে দমন করা বেশ কষ্টকর। দেখা মাত্রই হাত দিয়ে মেরে ফেলতে হবে না হলে দ্রুত ব্বংস বিস্তার করে। অথবা জমিতে প্লাবন সেচ দিতে হবে। যেহেতু এই পোকা মাটির নিচে থাকে তাহলে কিছূটা নির্মূল করা সম্ভব, না হলে ভয়ানক অবস্থার সৃষ্টি করতে পারে। তবে কৃষি বিভাগ বিষয়টি নিয়ে বেশ তৎপর রয়েছে পোকাটি যাতে ছড়িয়ে না পড়ে সেজন্য কাজ করছে এছাড়াও এই পোকা দমনে কৃষকদের মাঝে ফেরোমন ফাঁদ সরবরাহ করা হচ্ছে।

কুমিল্লাকে উড়িয়ে শীর্ষে রংপুর

ক্রীড়া প্রতিবেদক ॥  কম রানে কুমিল্লা ভিক্টোরিয়ান্সকে থামিয়ে রেখে আসল কাজটা করে দিয়েছিলেন বোলাররা। বাকিটা সহজেই সেরেছেন ব্যাটসম্যানরা। কুমিল্লা ভিক্টোরিয়ান্সকে উড়িয়ে দিয়ে শীর্ষে থেকে প্রাথমিক পর্ব শেষ করেছে গত আসরের চ্যাম্পিয়ন রংপুর রাইডার্স। বিপিএলে শনিবারের প্রথম ম্যাচে ৯ উইকেটে জিতেছে মাশরাফি বিন মুর্তজার দল। ৭৩ রানের ছোট লক্ষ্য ৬৩ বল বাকি থাকতে পেরিয়ে যায় রংপুর। দুই দলের প্রথম দেখাতেও ৯ উইকেটে জিতেছিল তারা। মিরপুর শের-ই-বাংলা জাতীয় ক্রিকেট স্টেডিয়ামে টস জিতে ব্যাট করতে নেমে শুরুটা ভালো হয়নি কুমিল্লার। শুরু থেকে নিয়মিত বিরতিতে উইকেট হারায় তারা। কেউ দায়িত্ব নিয়ে দলকে এগিয়ে নিতে পারেননি। গড়ে তুলতে পারেননি তেমন কোনো জুটি। ১৬ রানের ভেতর দুই ওপেনারকে ফিরিয়ে দেন নাহিদুল ইসলাম। ম্যাচের দ্বিতীয় বলে অফ স্পিনারকে উড়াতে গিয়ে শূন্য রানে ফিরেন তামিম ইকবাল। বাজে সময় কাটানো এনামুল হক যেতে পারেননি দুই অঙ্কে। দুই অঙ্কে যাওয়া শামসুর রহমানকে বিদায় করেন শহিদুল ইসলাম। মুখোমুখি হওয়া প্রথম বলে মাশরাফিকে পুল করে উড়ানোর চেষ্টায় শর্ট ফাইন লেগে ধরা পড়েন ইমরুল কায়েস। রংপুর অধিনায়ক দ্রুত ফিরিয়ে দেন থিসারা পেরেরাকে। ২৩ রানের মধ্যে ৫ উইকেট হারিয়ে ধুঁকতে থাকা কুমিল্লা একটু প্রতিরোধ গড়ে লিয়াম ডসন ও জিয়াউর রহমানের ব্যাটে। ২৫ বলে দুই চার ও এক ছক্কায় ২১ রান করা জিয়াকে ফেরান রবি বোপারা। পরে ফিরিয়ে দেন আবু হায়দার ও ডসনকেও। ১৬ রানে শেষ ৫ উইকেট হারানো কুমিল্লা গুটিয়ে যায় ৭২ রানে। রংপুরের বিপক্ষে গত ৮ জানুয়ারি মিরপুরেই প্রথম দেখায় ৬৩ রানে অলআউট হয়েছিল তারা। বোপারা ৭ রানে নেন ৩ উইকেট। দুটি করে উইকেট নেন নাহিদুল ও মাশরাফি। অভিষিক্ত তরুণ লেগ স্পিনার মিনহাজুল আবেদীন আফ্রিদি নেন ১ উইকেট। ছোট রান তাড়ায় অনায়াস জয় পায় রংপুর। দ্রুত ফিরেন মেহেদি মারুফ। ডি ভিলিয়ার্সকে নিয়ে বাকিটা সহজেই সারেন ক্রিস গেইল। ৩০ বলে তিন চার ও দুই ছক্কায় ৩৫ রানে অপরাজিত থাকেন ক্যারিবিয়ান ওপেনার গেইল। এবারের আসরে নিজের সবশেষ ম্যাচে ২২ বলে দুটি ছক্কা ও চারটি চারে ৩৪ রানে অপরাজিত থাকেন দক্ষিণ আফ্রিকার বিস্ফোরক ব্যাটসম্যান ডি ভিলিয়ার্স। দারুণ বোলিংয়ে ৩ উইকেট নেওয়া বোপারা জেতেন ম্যাচ সেরার পুরস্কার। ১২ ম্যাচে অষ্টম জয়ে রংপুরের পয়েন্ট ১৬। সমান ম্যাচে কুমিল্লারও পয়েন্ট ১৬। আগামী সোমবার ফাইনালে যাওয়ার লড়াই প্রথম কোয়ালিফায়ারে আবারও মুখোমুখি হবে এই দুই দল। সংক্ষিপ্ত স্কোর: কুমিল্লা ভিক্টোরিয়ান্স: ১৬.৩ ওভারে ৭২ (তামিম ০, এনামুল ৫, শামসুর ১২, ইমরুল ০, ডসন ১৮, থিসারা ৩, জিয়া ২১, আবু হায়দার ০, ওয়াহাব ০, সঞ্জিত ২, ওয়াকার ৬; নাহিদুল ২-১-৯-২, মাশরাফি ৪-০-১৮-২, শহিদুল ৩-০-১২-১, মিনহাজুল ২.৩-০-৮-১, বোপারা ৩-০-৭-৩, রেজা ২-০-১৭-০) – রংপুর রাইডার্স: ৯.৩ ওভারে ৭৬/১ (গেইল ৩৫*, মারুফ ৫, ডি ভিলিয়ার্স ৩৪*; আবু হায়দার ২-০-১১-০, সঞ্জিত ৩.৩-০-৩২-১, ওয়াকার ৪-১-৩৩-০) ফল: রংপুর ৯ উইকেটে জয়ী-  ম্যান অব দা ম্যাচ: রবি বোপারা

কেন্দ্রীয় চুক্তিতে ফিরলেন ইমরুল

ক্রীড়া প্রতিবেদক ॥  জাতীয় দলে জায়গা হারানো ইমরুল কায়েস ফিরেছেন বিসিবির কেন্দ্রীয় চুক্তিতে। প্রথমবারের মতো কেন্দ্রীয় চুক্তিতে এসেছেন আবু জায়েদ, নাঈম হাসান, মোহাম্মদ সাইফ উদ্দিন ও সৈয়দ খালেদ আহমেদ। গত বছর বিসিবির কেন্দ্রীয় চুক্তিতে শুরুতে ছিলেন ১০ ক্রিকেটার। পরে যোগ করা হয়েছিল লিটন দাস, আবু হায়দার ও নাজমুল হোসেন শান্তকে। রানের জন্য সংগ্রাম করা তরুণ বাঁহাতি ব্যাটসম্যান শান্ত জায়গা হারিয়েছেন এবার। মিরপুর শের-ই-বাংলা জাতীয় ক্রিকেট স্টেডিয়ামে শনিবার এক সংবাদ সম্মেলনে বিসিবি সভাপতি নাজমুল হাসান জানান, বোর্ড সভায় ‘এ’ ও ‘এ প্লাস’ ক্যাটাগরিতে আট জন, ‘বি’ ক্যাটাগরিতে চার জন ও রুকি ক্যাটাগরিতে পাঁচ জনকে রেখে নতুন কেন্দ্রীয় চুক্তি অনুমোদন দেওয়া হয়েছে। কেন্দ্রীয় চুক্তিতে থাকা ১৭ জনের মধ্যে রুকি ক্যটাগরিতে টিকে গেছেন বাঁহাতি পেসার আবু হায়দার। সেখানে তার সঙ্গী টেস্ট অভিষেকে পাঁচ উইকেট নিয়ে রেকর্ড গড়া অফ স্পিনার নাঈম, পেস বোলিং অলরাউন্ডার সাইফ এবং দুই পেসার আবু জায়েদ ও খালেদ। ‘বি’ ক্যাটাগরিতে আছেন মুমিনুল হক, মেহেদী হাসান মিরাজ ও তাইজুল ইসলাম। আর গতবার রুকি ক্যাটাগরিতে থাকা লিটন উঠে এসেছেন এই ক্যাটাগরিতে। কেন্দ্রীয় চুক্তিতে আছেন যারা: মাশরাফি বিন মুর্তজা, সাকিব আল হাসান, তামিম ইকবাল, মুশফিকুর রহিম, মাহমুদুল্লাহ রিয়াদ, ইমরুল কায়েস, মুস্তাফিজুর রহমান, রুবেল হোসেন, মমিনুল হক, লিটন দাস, মেহেদী হাসান মিরাজ, তাইজুল ইসলাম, আবু হায়দার রনি, আবু জায়েদ, মোহাম্মদ সাইফ উদ্দিন, নাঈম হাসান, সৈয়দ খালেদ আহমেদ।