মামলা দায়ের

ভেড়ামারায় পূর্ব শক্রতার জেরে পুকুরে বিষ প্রয়োগ করে মাছ নিধন

আল-মাহাদী ॥ কুষ্টিয়ার ভেড়ামারা রায়টা এলাকায় প্রতিপক্ষের প্রতিহিংসার শিকার হয়ে নিঃস্ব হয়েছে এক মৎস্য চাষী। পূর্ব শক্রতার জের ধরে গভীর রাতে পুকুরে বিষ প্রয়োগ করে প্রায় ১০০ মণ মাছ নিধন করে দিয়েছে একটি কুচক্রীমহল। ঘটনাটি ঘটিয়েছে ভেড়ামারা উপজেলার বাহাদুরপুর ইউনিয়নের রায়টা মহলদারপাড়া এলাকায়। এবিষয়ে রায়টা এলাকার মৃত সামছুল সরকারের পুত্র বাচ্চু বাদী হয়ে আদালতে একই এলাকার মহাসিন মহলদার সান্টু, মিন্টু, মালেক, ফরিদ ও বুলবুল মহলদারকে আসামী করে আদালতে মামলা দায়ের করেছে। যাহার মামলা নং : ভেড়ামারা সিআর ১৬৯/১৮ (দন্ডবিধি ৩২৮/৩৪)। লিখিত অভিযোগে প্রাপ্ত সুত্র মোতাবেক, রায়টা এলাকার মৃত সামছুল সরকারের পুত্র বাচ্চুর বাড়ি সংলগ্ন ৯ বিঘা জমির উপর নির্মিত পুকুরে দীর্ঘদিন ধরে সে বিভিন্ন প্রজাতির মাছ চাষাবাদ করে জীবিকা ধারন করে আসছে। এদিকে একই এলাকার মহসিন মহলদার সান্টু, মিন্টু, মালেক, ফরিদ ও বুলবুল মহলদারসহ একটি মহল এই পুকুর নিয়ে নানাবিধ ষড়যন্ত্র করে আসছে। বিভিন্ন সময় তারা প্রাণনাশ সহ পুকুরের মাছ বিষ দিয়া মেরে ফেলবো মর্মে মামলার বাদী ও আত্মীয় স্ব-জনদের হুমকি ধামকি প্রদান করে আসছে। এরই জের ধরে গত ২৭ আগস্ট দিবাগত রাত অনুমান ২ টা হতে ৫ টার মধ্যে যেকোন সময় পূর্ব শক্রতার জের ধরে আসামীগণ পুকুরের মাছ ধ্বংস করার উদ্দেশ্যে বিষ প্রয়োগ করে। এতে প্রায় ১০০ মণ মাছ যার আনুমানিক বাজার মূল্য প্রায় ৮ লক্ষ টাকার ক্ষতিসাধন করে বলে লিখিত অভিযোগ সুত্রে পাওয়া যায়। ঘটনার দিন ভোর ৫ টার দিকে মামলার বাদী ও পুকুরের স্বত্বাধিকারী বাচ্চু পুকুর সংলগ্ন পান বরজে পান ভাঙ্গতে গিয়ে পুকুরের দিকে নজর পড়ে এবং দেখতে পাই বিপুল পরিমান মাছ মরিয়া পানিতে ভাসিতেছে। কিন্তু ঘটনার পর থেকেই আসামীরা বাদী পক্ষের লোকজন মাছ মারা বিষয়ে কোন প্রকার মামলা মোকাদ্দমা না করার জন্য মর্মে বাদী ও বাদীর নানাপ্রকার ভয়ভীতি প্রদর্শন করতে থাকে। এই ঘটনায় এলাকায় থমথমে পরিবেশ বিরাজ করছে।

মহেশপুর জয় বাংলা ইয়ুথ এ্যাওয়ার্ড উপজেলা ফিল্ড এক্টিভিশন রেজিস্ট্রেশন শুরু

ঝিনাইদহ প্রতিনিধি ॥ ঝিনাইদহে ২০১৮ জয় বাংলা ইয়ুথ এ্যাওয়ার্ড উপজেলা ফিল্ড এক্টিভিশন রেজিস্ট্রিশন শুরু হয়েছে। কথন সাংস্কৃতিক সংগঠন (কসাস) এর আয়োজনে, কসাসের সভাপতি উম্মে সায়মা জয়া, সহ-সভাপতি শফিক রেহমান জুয়েল, সাধারণ সম্পাদক প্রতাপ আদিত্যসহ জয় ইয়ুথ এ্যাওয়ার্ড-২০১৮ এর ঝিনাইদহের ফিল্ড এক্টিভিশন টিম। কসাসের সাধারণ সম্পাদক প্রতাপ আদিত্য জানান, ২০১৫ ও ২০১৭ সালের ন্যায় এবারো দেশের ইতিবাচক পরিবর্তনে অবদান রাখা তরুণ সংগঠক ও সংগঠনকে সম্মাননা স্বরূপ ‘জয়বাংলা ইয়ুথ অ্যাওয়ার্ড’ দেবে ‘ইয়াং বাংলা’ এ লক্ষ্যে। মঙ্গলবার ঝিনাইদহের মহেশপুর- কোটচাঁদপুর, শুরু হয়েছে। বুধবার কুষ্টিয়া সদর, ভেড়ামারা, মিরপুর ও দৌলতপুর ও বৃহস্পতিবার কুমারখালী এবং খোকসা উপজেলার তরুন সংগঠনের আবেদন গ্রহণ করা হবে।

কালুখালীর হরিণবাড়ীয়া হাট সংলগ্ন ব্রিজে উঠার রাস্তা সংস্কার

ফজলুল হক ॥ রাজবাড়ী জেলাধীন কালুখালী উপজেলার কালিকাপুর ইউপির হরিণবাড়ীয়া হাট সংলগ্ন পদ্মা নদীর কোলের উপর নির্মিত ব্রিজের সামনে ও পেছনে উঠার রাস্তা সংস্কার করা হয়েছে। গতকাল সরেজমিনে গিয়ে দেখাযায় ইউনিয়ন চেয়ারম্যান মোঃ আতিউর রহমান নবাব এর নিজ অর্থায়নে ও ইউপি সদস্য মোঃ বিল্লাল হোসেনের প্রচেষ্টায় এ ব্রিজের সামনে উঠার বেহাল দশা এ রাস্তা বালি দিয়ে ভরাট কাজ সম্পন্ন করা হয়েছে। যার ফলে হরিণবাড়ীয়ার জনবহুল চর এলাকার মানুষের নির্বিঘেœ যাতায়াতের ব্যবস্থা সৃষ্টি করা হয়েছে। এসময় সাবেক ইউপি সদস্য মোঃ মফিজুল ইসলাম সহ এলাকার গন্যমান্য ব্যক্তিবর্গ উপস্থিত ছিলেন।

রোহিঙ্গা নারীদের সহায়তার জন্য ৭২ মিলিয়ন মার্কিন ডলার প্রয়োজন ঃ অক্সফাম

ঢাকা অফিস ॥ বাংলাদেশে আশ্রয় নেয়া মিয়ানমার থেকে বলপূর্বক বাস্তুচ্যুত রোহিঙ্গা জনগোষ্ঠির মহিলা ও মেয়েদের আরও সহায়তার জন্য ৭২ মিলিয়ন মার্কিন ডলারসহ ১৫ শতাংশ নতুন অর্থায়নের আহবান জানিয়েছে বৈশ্বিক সংস্থা অক্সফাম। রোহিঙ্গা সংকটের একবছর উপলক্ষে গতকাল মঙ্গলবার অক্সফামের ঢাকা অফিস প্রকাশিত ‘ওয়ান ইয়ার অন: টাইম টু পুট উইমেন এ্যান্ড গার্লস এট দ্যা হার্ট অব দ্যা রোহিঙ্গা রেসপন্স’ শীর্ষক এক প্রতিবেদন এসব কথা বলা হয়। বর্তমানে সার্বিক জরুরি সহায়তায় নারীদের নির্দিষ্ট প্রয়োজন মিটানোর জন্য আলাদা কোন বাজেট নাই বলে প্রতিবেদনে উল্লেখ করা হয়। অক্সফামের কান্ট্রি ডিরেক্টর ড. দীপঙ্কর দত্তের সভাপতিত্বে এ অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথি ছিলেন পররাষ্ট্র প্রতিমন্ত্রী মো. শাহরিয়ার আলম। রোহিঙ্গা জনগোষ্ঠির মিয়ানমারে প্রত্যাবর্তনের পর যাতে রোহিঙ্গা নারী ও মেয়েদের প্রয়োজন যথাযথভাবে পূরন করা যায় সেলক্ষ্যে মিয়ানমারের রাখাইন প্রদেশে প্রবেশের জন্য মিয়ানমারের ওপর চাপ প্রয়োগ অব্যহত রাখতে পররাষ্ট্র প্রতিমন্ত্রী আন্তর্জাতিক সম্প্রদায়ের প্রতি আহবান জানান। তিনি বলেন, ‘রোহিঙ্গা সমস্যার স্থায়ী সমাধানের লক্ষ্যে আমরা আন্তর্জাতিক অংশীদারদেরকে তাদের প্রচারণা আরও জোরদার করার জন্য অনুরোধ করছি।’ শাহরিয়ার আলম বলেন, রোহিঙ্গা জনগোষ্ঠির প্রতি বৈষম্য দূর করার ক্ষেত্রে মিয়ানমার কর্তৃপক্ষকে দৃঢ় রাজনৈতিক ইচ্ছা তথা দৃশ্যমান কর্মকান্ড প্রদর্শন করতে হবে। তিনি আশা প্রকাশ করেন, অক্সফামের প্রতিবেদনটি আন্তর্জাতিক দাতাদের জন্য তাদের প্রদেয় সহায়তা এবং মানবিক সহায়তাদানকারিদের জন্য পরিকল্পনা ও তা বাস্তবায়নের ক্ষেত্রে একটি দিক নির্দেশনা হিসাবে কাজ করবে। পররাষ্ট্র প্রতিমন্ত্রী বলেন, এই অতিরিক্ত সহায়তা পরিবার পরিকল্পনা কর্মসূচি, নারীদের সুনির্দিষ্ট স্বাস্থ্য ও পুষ্টির প্রয়োজনীয়তা, পৃথক স্যানিটেশন সুবিধা জন্য ক্যাম্পগুলো স্বাস্থ্য ঝুঁকি কমাতে সহায়ক হবে।

মিরপুরে দু’পকেটমারের সাজা

মিরপুর প্রতিনিধি ॥ কুষ্টিয়ার মিরপুর পোড়াদহে সাগরদাড়ী ট্রেন থেকে দুজন পকেটমারকে আটক করেছে জিআরপি থানা পুলিশ। রাজশাহী থেকে খুলনাগামী সাগরদাড়ী ট্রেনের মধ্যে থেকে মঙ্গলবার সকাল ৯টায় এদুজন পকেটমারকে ট্রেনযাত্রীরা ধরে পুলিশে দেয়। ধৃত পকেটমার মিরপুর উপজেলার বারুইপাড়া ইউনিয়নের মির্জানগর গ্রামের মৃত ইসাহক মালিথার ছেলে নিশান (৪০) ও একই গ্রামের বালা মন্ডলের ছেলে রুবেল (২২)। পরবর্তীতে উপজেলা নির্বাহী অফিসার এস. এম জামাল আহমেদ দুপুরে ভ্রাম্যমান আদালতের মাধ্যমে এদুজন পকেটমারকে ৩ মাস করে জেল দিয়ে কারাগারে পাঠান। উল্লে¬খ্য পকেটমার নিশান জেলার বিভিন্ন পকেটমার চক্রের মূল হোতা বলে জানাগেছে।

 

ঝিনাইদহে মাদক বিরোধী আলোচনা সভা ও শপথবাক্য পাঠ

ঝিনাইদহ প্রতিনিধি ॥ ঝিনাইদহে ‘জীবনকে ভালবাসুন, মাদক থেকে দুরে থাকুন’ এ শ্লোগানকে সামনে রেখে মাদক বিরোধী আলোচনা সভা ও শিক্ষার্থীদের শপথবাক্য পাঠ করানো হয়েছে। গতকাল মঙ্গলবার দুপুরে ঝিনাইদহ কলেজ মাঠে এ অনুষ্ঠানের আয়োজন করেন জেলা মাদকদ্রব্য নিয়ন্ত্রন কার্যালয়। ঝিনাইদহ কলেজের অধ্যক্ষ বাদশা আলম এর সভাপতিত্বে অনুষ্ঠানে বক্তব্য রাখেন জেলা মাদকদ্রব্য নিয়ন্ত্রন কার্যালয়ের সহকারি পরিচালক আজিজুল হক, সদর থানার পরিদর্শক(তদন্ত) এমদাদুল হক, জেলা মাদকদ্রব্য নিয়ন্ত্রন কার্যালয়ের পরিদর্শক রাসেল আলী, কলেজের ম্যানেজিং কমিটির সদস্য মনোয়ার হোসেন, কলেজ ছাত্রলীগের সাধারণ সম্পাদক ফারুক হোসেন। অনুষ্ঠান পরিচালনা করেন কলেজে প্রভাষক বাবুল আক্তার লাল্টু। বক্তারা, মাদকের কুফল সম্পর্কে আলোচনা ও মাদকমুক্ত দেশ গড়তে সর্বস্তরের মানুষকে ঐক্যবদ্ধ হয়ে একসাথে কাজ করার আহ্বান জানান। পরে শিক্ষার্থীদের মাদক বিরোধী শপথবাক্য পাঠ করানো হয়।

ঝিনাইদহের নবগঙ্গা নদীতে কচুুরিপানা অপসারণ অভিযান

ঝিনাইদহ প্রতিনিধি ॥ ঝিনাইদহের নবগঙ্গা নদীর পানিপ্রবাহ বহমান রাখতে নদী থেকে কচুরীপানা অপসারণ অভিযান শুরু হয়েছে। গতকাল মঙ্গলবার সকালে শহরের ধোপাঘাটা এলাকায় এ অভিযানের উদ্বোধন করেন জেলা প্রশাসক সরোজ কুমার নাথ। এসময় উপস্থিত ছিলেন সদর উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা শাম্মী ইসলাম, উপজেলা প্রাথমিক শিক্ষা কর্মকর্তা মুশতাক আহমেদ, সদর উপজেলা সহকারি কমিশনার (ভূমি) এস এম মুনিম লিংকন, সদর উপজেলা সহকারি মৎস্য কর্মকর্তা মিজানুর রহমান, স্কাউট কমিশনার আবু বক্কারসহ গ্রাম পুলিশ, স্কাউট সদস্যবৃন্দ কয়েকটি মৎস্যজীবী সমবায় সমিতির নেতৃবৃন্দ উপস্থিত ছিলেন। ঝিনাইদহ সদর উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা শাম্মি ইসলাম জানান, নবগঙ্গা নদী বাচাতে ও নদীর পানি প্রবাহ বাধামুক্ত করতে এই উদ্যোগ গ্রহন করা হয়েছে। তিনি বলেন ঝিনাইদহ শহরের উপর দিয়ে প্রবাহিত প্রায় ৫ কিলোমিটার এলাকার কচুরিপনা পরিস্কার করা হবে। এতে নবগঙ্গা নদীর স্রোতধারা ঠিক থাকবে। সেই সাথে নদীর পরিবেশ ফিরে আসবে।

সুষ্ঠু নির্বাচনের আশ্বাস দিলেন প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা

ঢাকা অফিস ॥ জাতিসংঘের আসন্ন ৭২তম সাধারণ সভায় বাংলাদেশে অবস্থান নেয়া মিয়ানমার থেকে বিতাড়িত রোহিঙ্গাদের প্রত্যাবর্তনের বিষয়টি গুরুত্বের সঙ্গে উত্থাপন করা হবে এবং এ বিষয়ে শক্তিশালী ভূমিকা পালন করবে যুক্তরাষ্ট্র। মার্কিন রাষ্ট্রদূত প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনাকে বলেছেন, যুক্তরাষ্ট্র বাংলাদেশে সহিংসতামুক্ত সুষ্ঠু ও স্বচ্ছ পরিবেশে আসন্ন জাতীয় সংসদ নির্বাচন আশা করে। জবাবে প্রধানমন্ত্রী সুষ্ঠু ও স্বচ্ছ পরিবেশে নির্বাচনের আশ্বাস দিয়েছেন। গতকাল মঙ্গলবার বাংলাদেশে নিযুক্ত মার্কিন যুক্তরাষ্ট্রের রাষ্ট্রদূত মার্শা বার্নিকাট প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার সঙ্গে সাক্ষাৎ করে এসব কথা বলেন। সন্ধ্যায় প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার সরকারি বাসভবন গণভবনে এ সাক্ষাৎ অনুষ্ঠিত হয়। সাক্ষাতের পর প্রধানমন্ত্রীর প্রেস সচিব ইহসানুল করিম সাংবাদিকদের ব্রিফিংকালে বলেন, ‘বৈঠকে বিভিন্ন বিষয়ে বিশেষ করে বাংলাদেশের জ্বালানিখাতে দুই দেশের সহযোগিতার বিষয় আলোচনায় গুরুত্ব পায়।’ মার্কিন রাষ্ট্রদূত বলেন, জাতিসংঘ সাধারণ পরিষদের ৭৩তম অধিবেশনে যুক্তরাষ্ট্র প্রেসিডেন্সি পাবে এবং তখন রোহিঙ্গা শরণার্থীদেরকে মিয়ানমারে তাদের নিজ বাসভূমে প্রত্যাবাসনের বিষয়টি অত্যন্ত গুরুত্বের সঙ্গে তোলা হবে। বৈঠকে মার্শা বার্নিকাট বাংলাদেশের জ্বালানি খাতে যুক্তরাষ্ট্রের আগ্রহের কথা প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনাকে জানান। এ সময় প্রধানমন্ত্রী বলেন, তার সরকার জ্বালানি খাত থেকে শুরু করে টিভি, মোবাইল ফোনসহ বিভিন্ন খাতকে বেসরকারি খাতে উন্মুক্ত করে দিয়েছে যাতে দেশে কর্মসংস্থান সৃষ্টি হয়। আলোচনাকালে মার্কিন রাষ্ট্রদূত প্রধানমন্ত্রীকে বলেন, যুক্তরাষ্ট্র বাংলাদেশে সহিংসতামুক্ত সুষ্ঠু ও স্বচ্ছ পরিবেশে আসন্ন জাতীয় সংসদ নির্বাচন আশা করে। জবাবে শেখ হাসিনা বলেন, আগামী সাধারণ নির্বাচন অবশ্যই সুষ্ঠু ও স্বচ্ছভাবে অনুষ্ঠিত হবে। কারণ তার সরকার সে লক্ষ্যে প্রয়োজনীয় পদক্ষেপ নিয়েছে। আগামী অক্টোবরে ঢাকা মিশন শেষ হচ্ছে প্রায় তিন বছর ধরে ঢাকায় থাকা জ্যেষ্ঠ কূটনীতিক মার্শা বার্নিকাটের। তবে সরকার প্রধানের সঙ্গে এটি তার বিদায়ী সাক্ষাৎ নয়। বরং দুই দেশের স্বার্থ-সংশ্লিষ্ট বিভিন্ন গুরুত্বপূর্ণ বিষয়ে জরুরি আলোচনা করতে বৈঠক করেন তিনি।

কুষ্টিয়ায় রবীন্দ্র মৈত্রী বিশ^বিদ্যালয়ে ৩ দিনব্যাপী ভর্তি মেলার উদ্বোধন

নিজ সংবাদ ॥ কুষ্টিয়ায় রবীন্দ্র মৈত্রী বিশ^বিদ্যালয়ে ৩ দিনব্যাপী ভর্তি মেলার উদ্বোধন করা হয়েছে। গতকাল মঙ্গলবার সকাল ১০ টায় প্রধান অতিথি থেকে ভর্তি মেলার উদ্বোধন করেন রবীন্দ্র মৈত্রী বিশ^বিদ্যালয়ের উপাচার্য প্রফেসর ড. মোঃ শাহজাহান আলী। রবীন্দ্র মৈত্রী বিশ^বিদ্যালয়ের রেজিস্ট্রার (ভারপ্রাপ্ত) ড. মোছা. ইসমত আরা খাতুন এর সভাপতিত্বে উদ্বোধনী অনুষ্ঠানে বিশেষ অতিথি ছিলেন রবীন্দ্র মৈত্রী বিশ^বিদ্যালয়ের মানবিক ও সামাজিক বিজ্ঞান অনুষদের ডিন ও বাংলা বিভাগের প্রধান প্রফেসর ড. মোঃ শহীদুর রহমান। এছাড়াও বক্তব্য রাখেন রবীন্দ্র মৈত্রী বিশ^বিদ্যালয়ের প্রতিষ্ঠাতা ও বোর্ড অব ট্রাস্টিজ এর ভাইস চেয়ারম্যান এবং ইসলামী বিশ^বিদ্যালয়ের আইন বিভাগের চেয়ারম্যান প্রফেসর ড. মোঃ জহুরুল ইসলাম। অনুষ্ঠানটি পরিচালনা করেন রবীন্দ্র মৈত্রী বিশ^বিদ্যালয়ের ব্যবসায়ী প্রশাসন বিভাগের প্রভাষক শ্রাবণী বাগচী। ১১ সেপ্টেম্বর মঙ্গলবার উদ্বোধনী অনুষ্ঠানে প্রচুর সমাগম হয়। ৩ দিন ব্যাপী ভর্তি মেলাটি ১২ এবং ১৩ সেপ্টেম্বর ২০১৮ ইং তারিখে সকাল ১০ টা থেকে সন্ধ্যা ৬ টা পর্যন্ত বিশ^বিদ্যালয়ের একাডেমিক ভবন প্রাঙ্গণে অনুষ্ঠিত হবে। জানাগেছে, কবিগুরুর রবীন্দ্রনাথের স্মৃতি বিজড়িত কুষ্টিয়াতে রবীন্দ্র মৈত্রী বিশ^বিদ্যালয় প্রতিষ্ঠিত হয়েছে। রবীন্দ্র মৈত্রী বিশ^বিদ্যালয় ২০১৭ সালের অক্টোবর মাস থেকে পাঠদানের কার্যক্রম পরিচালনা করে আসছে। নান্দনিক অবকাঠামো এবং দক্ষ শিক্ষকমন্ডলীর তত্ত্বাবধানে শিক্ষার্থীদের অধ্যয়ন করানো হচ্ছে। বিশ^বিদ্যালয়টি তার যাত্রার শুরু থেকেই গরীব ও মেধাবী শিক্ষার্থীদের নানা ধরনের ছাড়ের ব্যবস্থা করে আসছে। ২০১৮ ফল সেমিস্টারে শিক্ষার্থী ভর্তির জন্য বিশ^বিদ্যালয় কর্তৃপক্ষ ভর্তি মেলার আয়োজন করেছে। মেলায় এসে শিক্ষার্থী ভর্তি হলে টিউশন ফি এর উপর ১০০% পর্যন্ত ছাড় পেতে পারে। বর্তমানে রবীন্দ্র মৈত্রী বিশ^বিদ্যালয়ে ৮ টি বিভাগে অনার্স প্রোগ্রামে ভর্তি হবার সুযোগ রয়েছে। বিষয়সমূহ: বাংলা, ইংরেজি, আইন, বিবিএ, কৃষি, আইসিই, সিএসই, ইইই।

কালীগঞ্জে অস্ত্র, গুলি ও বোমাসহ একজন আটক

ঝিনাইদহ প্রতিনিধি ॥ ঝিনাইদহের কালীগঞ্জ উপজেলা থেকে বোমা, গুলি ও দেশীয় অস্ত্রসহ হাবিবুর রহমান (৪০) নামের এক ব্যক্তিকে আটক করেছে পুলিশ। মঙ্গলবার ভোর রাতে কালীগঞ্জ পৌরসভার কলেজপাড়া এলাকার নিজ বাড়ি থেকে তাকে আটক করে। সে কলেজ পাড়ার আনছার আলী খা’র ছেলে। কালীগঞ্জ থানার (ভারপ্রাপ্ত) ওসি আতিকুর রহমান জানান, গোপন সংবাদের ভিত্তিতে শহরের কলেজপাড়া এলাকায় অভিযান চালিয়ে হাবিবুর রহমানকে আটক করা হয়। সেসময় তার কাছ থেকে ৩ রাউন্ড সর্টগানের গুলি, ২টি হাত বোমা ও ১টি হাসুয়া উদ্ধার করা হয়। তার নামে ডাকাতি, অস্ত্রসহ ৪টি মামলা রয়েছে। আটককৃত হাবিবুর রহমানকে জিজ্ঞাসাবাদ শেষে আদালতে পাঠানো হবে।

শার্টারগান ও ৭টি হাত বোমা উদ্ধার

মেহেরপুরে পুলিশের অভিযানে ১৯ জন আটক

মেহেরপুর প্রতিনিধি ॥ মেহেরপুর সদরসহ গাংনী উপজেলার বিভিন্ন স্থানে অভিযান চালিয়ে ১৯জনকে আটক করেছে পুলিশ সদস্যরা। এ সময় ১টি এলজি শার্টারগান ও ৭টি হাত বোমা উদ্ধার করা হয়। সোমবার দিবাগত রাত থেকে মঙ্গলবার ভোররাত পর্যন্ত জেলার বিভিন্ন স্থানে মেহেরপুর সদর ও গাংনী থানা পুলিশের কয়েকটিদল অভিযান চালিয়ে বিভিন্ন মামলার ১৯জনকে আটক করে। অভিযানের সময় পরিত্যক্ত অবস্থায় এলজি শার্টারগান ও ৭টি হাত বোমা উদ্ধার করা হয়। মেহেরপুর পুলিশ সুপারের কন্ট্রোলরুম সূত্রে জানা যায়, মেহেরপুর সদর ও গাংনী উপজেলার বিভিন্ন গ্রামে অভিযান চালিয়ে বিভিন্ন মামলার গ্রেফতারি পরোয়ানাভূক্ত ১৯জন আসামীকে আটক করা হয়। অভিযানের সময় মেহেরপুর শহরের পৌর মাধ্যমিক বিদ্যালয়ের প্রাচীরের পাশ থেকে পরিত্যক্ত ১টি এলজি শার্টারগান ও ২ রাউন্ড শার্টারগানের গুলি উদ্ধার করে মেহেরপুর সদর থানা পুলিশ। এছাড়াও রাতে একই উপজেলার নুরপুর গ্রাম থেকে পরিত্যক্ত ৫টি বোমা উদ্ধার করে পুলিশ। অন্যদিকে গাংনী উপজেলা পীরতলা গ্রাম থেকে পরিত্যক্ত ২টি হাত বোমা উদ্ধার করে গাংনী থানা পুলিশ।

পোড়াদহ রেলওয়ে থানার অভিযানে ফেন্সিডিলসহ যুবক আটক

নিজ সংবাদ ॥ কুষ্টিয়ার মিরপুর উপজেলার পোড়াদহ রেলওয়ে থানা পুলিশের অভিযানে ৩০ বোতল ভারতীয় ফেন্সিডিলসহ এক মাদক ব্যবসায়ী আটক হয়েছে। থানা সূত্রে জানা গেছে, পোড়াদহ রেলওয়ে থানার অফিসার ইনচার্য মোল্যা আফজাল হোসেনের নেতৃত্বে এটিএসআই পারভেজ আলম সঙ্গীয় ফোর্স নিয়ে গত রবিবার খুলনা হতে গোয়ালন্দ ঘাটগামী ২৫নং নকশীকাথা মেইল ট্রেনে এক মাদক বিরোধী অভিযান পরিচালনা করে। ট্রেনটি সকাল সাড়ে ৬টার সময় জয়রামপুর রেলওয়ে ষ্টেশনে পৌছলে অভিযান চালিয়ে স্কুল ব্যাগে থাকা ৩০ বোতল ভারতীয় ফেন্সিডিলসহ চুয়াডাঙ্গা জেলার জীবননগর উপজেলার মোমিনপুর মাঠপাড়া গ্রামের রফিক চৌদ্দারের ছেলে ওমর ফারুক(২৫) কে আটক করে। পরে থানায় নিয়ে আসে । এ ব্যাপারে মামলা হয়। আটককৃতকে কোর্টে চালান দেয়া হয়েছে।

বিএনপি-জামায়াত গুজব কারখানা – তথ্যমন্ত্রী

ঢাকা অফিস ॥ তথ্যমন্ত্রী হাসানুল হক ইনু বলেছেন, খালেদা জিয়ার অসুস্থতা নিয়ে মিথ্যাচার করে গুজব ছড়ানো হচ্ছে। তিনি পুরোপুরি সুস্থ আছেন। এ ছাড়া নির্বাচন সামনে রেখে সন্দেহের ফানুস তৈরি করার অপচেষ্টা হচ্ছে। নির্বাচন কি হবে? এ প্রশ্ন সারা দেশে ছড়িয়ে দেওয়া হচ্ছে। বিএনপি-জামায়াত হলো গুজব উৎপাদনের সংগঠিত কারখানা। গুজব রটনাকারীদের কালো থাবা থেকে সামাজিক মাধ্যমকে রক্ষা করতে কঠোর পদক্ষেপ নেওয়া হবে। গতকাল মঙ্গলবার দুপুরে রাজধানীর সিরডাপ মিলনায়তনে তথ্য অধিদপ্তর আয়োজিত ‘গুজব: গণমাধ্যম ও সামাজিক মাধ্যমের ভূমিকা’ শীর্ষক মতবিনিময় সভায় এসব কথা বলেন তথ্যমন্ত্রী। প্রধান অতিথির বক্তব্যে তিনি বলেন, গুজবের অপসংস্কৃতি অনেক পুরোনো। যারা সাম্প্রদায়িক বোমার মালিক, তারাই গুজব রটনার মালিক। গুজব নিরসনে তথ্যের অবাধ প্রবাহ নিশ্চিত করা হবে। গুজব শনাক্তকরণ ও নিরসন কেন্দ্র করার বিষয়ে উদ্যোগ নেওয়া হবে বলেও জানান তিনি। প্রধানমন্ত্রীর তথ্য উপদেষ্টা ইকবাল সোবহান চৌধুরী বলেন, গুজব প্রতিরোধে সঠিক তথ্য সঠিক সময়ে দিতে হবে। গণমাধ্যমকে আস্থায় নিতে হবে। না হলে গুজব নিরসন হবে না। তথ্য প্রতিমন্ত্রী তারানা হালিম বলেন, গুজব তৈরি করে বিশৃঙ্খলা সৃষ্টির জন্য লন্ডন থেকে জামায়াত-শিবির অর্থায়ন করছে। সামাজিক মাধ্যমে অপপ্রচারের খেলা শুরুতেই শেষ করে দিতে হবে। অনুষ্ঠানে প্রবন্ধ উপস্থাপন করেন ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের অধ্যাপক মফিজুর রহমান। তিনি বলেন, সমাজে বিদ্যমান উদ্বেগ, তথ্যের অস্বচ্ছতা, কোনো তথ্যের গুরুত্ব ও বিশ্বাসযোগ্য উৎস না থাকার কারণে গুজব ছড়ায়। জাতীয় প্রেসক্লাবের সাধারণ সম্পাদক ফরিদা ইয়াসমিন বলেন, মতপ্রকাশের স্বাধীনতা না থাকলে মানুষ বিকল্প পথ খুঁজে নেয়। তাই তথ্য প্রবাহে বাধা দেওয়া ঠিক নয়। উন্মুক্ত আলোচনায় বিভিন্ন গণমাধ্যমের সাংবাদিকেরা বলেন, ‘গণমাধ্যমকে যত বেশি নিয়ন্ত্রণ করবেন, তত বেশি গুজব ছড়াবে। তাই গণমাধ্যমের কাজ করার সুযোগ বাড়াতে হবে। এ ছাড়া গুজব ছড়ানোর সঙ্গে সঙ্গে সরকারের পক্ষ থেকে প্রকৃত তথ্য জানানোর উদ্যোগ নিতে হবে।’ অনুষ্ঠানে সভাপতিত্ব করেন তথ্য অধিদপ্তরের মহাপরিচালক কামরুন নাহার। বক্তব্য দেন তথ্যসচিব আবদুল মালেক, বাংলাদেশ বেতারের মহাপরিচালক নারায়ণ চন্দ্র শীল, বাংলাদেশ চলচ্চিত্র ও প্রকাশনা অধিদপ্তরের মহাপরিচালক মোহাম্মদ ইসতাক হোসেন, গণযোগাযোগ অধিদপ্তরের মহাপরিচালক মো. জাকির হোসেন প্রমুখ।

দৌলতপুরে ইসলামপুর মাধ্যমিক বিদ্যালয়ের সহকারী শিক্ষক তসলিম উদ্দিণ স্মরণে নাগরিক শোকসভা

দৌলতপুর প্রতিনিধি ॥ কুষ্টিয়ার দৌলতপুর উপজেলার ইসলামপুর মাধ্যমিক বিদ্যালয়ের সহকারী শিক্ষক তসলিম উদ্দিন স্মরণে নাগরিক শোকসভা ও বিশেষ দোয়া মাহফিল অনুষ্ঠিত হয়েছে। গতকাল মঙ্গলবার সকালে ইসলামপুর মাধ্যমিক বিদ্যালয়ের আয়োজনে বিদ্যালয় চত্বরে এ শোকসভা অনুষ্ঠিত হয়। ইসলামপুর মাধ্যমিক বিদ্যালয়ের প্রধান শিক্ষক মো. মহিউদ্দিনের সভাপতিত্বে শোকসভায় বক্তব্য রাখেন- মরহুম তসলিম উদ্দিনের ঘনিষ্ঠ বন্ধু কেন্দ্রীয় জাসদ নেতা শরিফুল কবীর স্বপন, বিশিষ্ট মুক্তিযোদ্ধা হায়দার আলী, জেলা পরিষদের সদস্য আসাদুজ্জামান লোটন চৌধুরী, ফিলিপনগর ইউপি চেয়ারম্যান একেএম ফজলুল হক কবিরাজ, দৌলতপুর কলেজের বাংলা বিভাগের সহকারী অধ্যাপক সরকার আমিরুল ইসলাম, দৌলতখালী মাধ্যমিক বিদ্যালয়ের প্রধান শিক্ষক মজিবর রহমান, জাসদ নেতা অসিত কুমার সিংহ, জেএমজি মাধ্যমিক বিদ্যালয়ের প্রধান শিক্ষক আশরাফুল ইসলাম নান্নু, দৌলতপুর কলেজের ব্যবস্থাপনা বিভাগের প্রভাষক শরীফুল ইসলাম, ইসলামপুর সরকারী প্রাথমিক বিদ্যালয়ের প্রধান শিক্ষক গোলাম কিবরিয়া, ডা. সালেহ আহমেদ, সাংবাদিক সাইদুর রহমান, পিএসএস মাধ্যমিক বিদ্যালয়ের প্রধান শিক্ষক রাকিবুল ইসলাম, বাহিরমাদী মাধ্যমিক বিদ্যালয়ের শিক্ষক একে রাজুসহ স্থানীয় সুধী ফারুক আহমেদ, আশা দোকানদার, ইসলামপুর মাধ্যমিক বিদ্যালয়ের সহকারী শিক্ষক আবু কাউসার, তহিদুল ইসলাম, রাকিবুল ইসলাম, জাহিদুল ইসলাম, শিক্ষার্থী দিপালী, সুমাইয়া, মনিকা, শোভা, মাহে স্বনন ও শাপলা। শেষে বিশেষ দোয়া মাহফিলে দোয়া পরিচালনা করেন পিএসএস মাধ্যমিক বিদ্যালয়ের মওলানা মোঃ আলফাজ হোসেন। গত শুক্রবার দুপুরে হৃদরোগে আক্রান্ত হয়ে ইসলামপুর মাধ্যমিক বিদ্যালয়ের সহকারী শিক্ষক (কম্পিউটার) তসলিম উদ্দিন না ফেরার দেশে পাড়ি জমান।

মাহবুবউল আলম হানিফ পবিত্র হজ্ব পালন শেষে সুস্থ্যভাবে দেশে ফেরায় সদরপুরে দোয়া মাহ্ফিল

আমলা অফিস ॥ কুষ্টিয়ার মিরপুরে বাংলাদেশ আওয়ামীলীগের যুগ্ম-সাধারন সম্পাদক ও কুষ্টিয়া-৩ আসনের সংসদ সদস্য মাহবুবউল আলম হানিফ পবিত্র হজ্ব পালন শেষে সুস্থ্যভাবে দেশে ফেরায় দোয়া মাহ্ফিল অনুষ্ঠিত হয়েছে। গতকাল মঙ্গলবার বিকেলে মিরপুর উপজেলার সদরপুর ইউনিয়নের আমতলা বাজার প্রাঙ্গণে মিরপুর উপজেলা আওয়ামীলীগের সাধারন সম্পাদক ও উপজেলা পরিষদের চেয়ারম্যানের উদ্যোগে এ দোয়া মাহ্ফিল অনুষ্ঠিত হয়। দোয়া মাহ্ফিলে উপস্থিত ছিলেন মিরপুর উপজেলা পরিষদের ভাইস চেয়ারম্যান শারমিন আক্তার নাছরিন, মিরপুর উপজেলা আ’লীগের সাংগঠনিক সম্পাদক রুহুল আমীন বিশ্বাস, উপজেলা আওয়ামীলীগের ক্রীড়া বিষয়ক সম্পাদক মহাম্মদ আলী জোয়ার্দ্দার, মহিলা বিষয়ক সম্পাদক এ্যাডভোকেট মর্জিনা খাতুন, আড়িয়া ইউনিয়ন পরিষদের চেয়ারম্যান সাঈদ আন্সারী বিপ্লব, বহলবাড়ীয়া ইউনিয়ন পরিষদের চেয়ারম্যান সোহেল রানা, ফুলবাড়ীয়া ইউনিয়ন পরিষদের চেয়ারম্যান আব্দুস সালাম, সদরপুর ইউনিয়ন পরিষদের সাবেক চেয়ারম্যান নিয়াত আলী লালু, মালিহাদ ইউনিয়ন আওয়ামীলীগের সভাপতি আকরাম হোসেন, ছাতিয়ান ইউনিয়ন আওয়ামীলীগের সভাপতি তাছের আলী, আমবাড়ীয়া ইউনিয়ন আওয়ামীলীগের সাধারন সম্পাদক মিলন চৌধুরী, আওয়ামীলীগ নেতা আব্দুল হামিদ, ধুবাইল ইউনিয়ন আ’লীগের সভাপতি আতর আলী, সাধারন সম্পাদক মিজানুর রহমান, তালবাড়ীয়া ইউনিয়ন আওয়ামীলীগের সাইদুর রহমান মন্টু, বারুইপাড়া ইউনিয়ন আ’লীগের সভাপতি মন্টু ডাক্তার, সাধারন সম্পাদক মোমিনুল ইসলাম, আমলা ইউনিয়ন আ’লীগের সভাপতি একলেমুর রেজা সাবান জোয়ার্দ্দার, সাধারন সম্পাদক আসাদুজ্জামান সুমন, চিথলিয়া ইউনিয়ন আ’লীগের সভাপতি এনামূল হক বাবলু, কুর্শা ইউনিয়ন আ’লীগের সভাপতি আব্দুল হান্নান, পৌর আ’লীগের সাধারন সম্পাদক ফেরদৌস ওয়াহেদ জোয়ার্দ্দার, জেলা কৃষকলীগের যুগ্ম-সাধারন সম্পাদক রমজান আলী সাহেব, সদরপুর সিদ্দিকীয়া দাখিল মাদ্রাসার সভাপতি মাজেদুর আলম বাচ্চু, মিরপুর উপজেলা যুবলীগের সভাপতি আবুল কাশেম জোয়ার্দ্দার, সাধারন সম্পাদক আব্দুল হালিম, আমলা সদরপুর মাধ্যমিক বিদ্যালয়ের সাবেক প্রধান শিক্ষক শাহাজ্জেল হোসেন, প্রধান শিক্ষক আব্দুল গাফ্ফার, যুবলীগ নেতা আশরাফুল ইসলাম, গোলাম কিবরিয়া মাসুম, দৌলতপুর উপজেলা যুবলীগের সাবেক যুগ্ম-আহবায়ক জাহাঙ্গীর আলম, জেলা ছাত্রলীগের সহ-সভাপতি মোস্তাফিজুর রহমান, যুগ্ম-সাধারন সম্পাদক আ.ন.ম তানভীর, প্রচার সম্পাদক মিরুল হাসান সজীব প্রমুখ। এসময় এলাকার গণ্যমান্য ব্যক্তিবর্গ, উপজেলা আ’লীগের নেতৃবৃন্দ, বিভিন্ন ইউনিয়ন আ’লীগ ও এর অংগ সংগঠনের নেতৃবৃন্দ উপস্থিত ছিলেন। পরে দোয়া ও মোনাজাত পরিচালনা করেন সদরপুর কেন্দ্রীয় মসজিদের ঈমাম জমির উদ্দিন।

সমসাময়িক রাজনীতি নিয়ে আয়োজিত সংবাদ সম্মেলনে ওবায়দুল কাদের

জাতীয় ঐক্যের নামে সাম্প্রদায়িক ঐক্য প্রতিষ্ঠা করতে চায় বিএনপি

ঢাকা অফিস ॥ আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক এবং সড়ক পরিবহন ও সেতুমন্ত্রী ওবায়দুল কাদের বলেছেন, আগামী জাতীয় নির্বাচনকে সামনে রেখে বিএনপি জাতীয়তাবাদী সাম্প্রদায়িক ঐক্য প্রতিষ্ঠা করতে চায়। নির্বাচনকালীন সরকার সম্পর্কে সেতুমন্ত্রী বলেন, আগামী অক্টোবর মাসের মাঝামাঝি নির্বাচনকালীন সরকার গঠিত হতে পারে। এ সরকারে কোন টেকনোক্রেট সদস্য থাকবে না এবং আকারে ছোট হবে। ওবায়দুল কাদের গতকাল মঙ্গলবার সকালে রাজধানীর সচিবালয়ে নিজ মন্ত্রালয়ের সম্মেলন কক্ষে সমসাময়িক রাজনীতি নিয়ে আয়োজিত সংবাদ সম্মেলনে সাংবাদিকদের এক প্রশ্নের জবাবে এ কথা বলেন। নির্বাচনকালীন সরকারের মন্ত্রিসভার সদস্য কতজন হতে পারে জানতে চাইলে ওবায়দুল কাদের বলেন, দশম জাতীয় সংসদ নির্বাচনের সময় যে সংখ্যক সদস্য নিয়ে মন্ত্রীসভা গঠিত হয়েছিল তার সে সংখ্যক সদস্য নিয়ে গঠিত হতে পারে। আগামী নির্বাচনে আওয়ামী লীগের জোটের সমীকরণ সম্পর্কে জানতে চাইলে তিনি বলেন, বিএনপি নির্বাচনে এলে জোটের সমীকরণ এক ধরনের হবে, আর না এলে আরেক ধরনের হবে। তারা নির্বাচনে এলে জোটের আসন বন্টন ও সমঝোতার বিষয়ে সিদ্ধান্ত নেওয়া হবে। ওবায়দুল কাদের বলেন, রাজনৈতিক মেরুকরণের ওপর আওয়ামী লীগের জোটের সমীকরণ নির্ভর করছে। যেভাবে রাজনৈতিক মেরুকরণ হবে সেভাবে আমাদের জোটেরও সমীকরণ হবে। দেশের সবচেয়ে বড় রাজনৈতিক দল আওয়ামী লীগকে বাদ দিয়ে জাতীয় ঐক্য হাস্যকর উল্লেখ করে সেতুমন্ত্রী বলেন, বিএনপির ঐক্যকে জাতীয় ঐক্য না বলে জাতীয়তাবাদী সাম্প্রদায়িক ঐক্য বলাই ভাল। কাদের বলেন, বিএনপি বেগম খালেদা জিয়ার চিকিৎসার চেয়ে তার অসুস্থ্যতা নিয়ে রাজনীতি করছেন। এটাকে তারা রাজনৈতিক ইস্যু বানিয়ে রাজনীতি করতে চাইছে। তার অসুস্থ্যতাকে অজুহাত হিসেবে ব্যবহার করে তারা মানুষকে তাদের আন্দোলনে সম্পৃক্ত করতে চাচ্ছে। বিএনপি সাম্প্রদায়িক শক্তিকে নিয়ে ঐক্য করতে চায় উল্লেখ করে তিনি বলেন, বিএনপির নিজেদের ঘরেই কোন ঐক্য নেই। তাদের এক নেতা অপর নেতাকে সরকারের এজেন্ট বলে উল্লেখ করে। যাদের নিজেদের ঘরেই ঐক্য নেই তারা কিভাবে জাতীয় ঐক্য প্রতিষ্ঠা করবে? খালেদা জিয়াকে ছাড়া নির্বাচন হতে দেবে না বলে বিএনপি মহাসচিব মির্জা ফখরুল ইসলাম আলমগীরের মন্তব্য সম্পর্কে জানতে চাইলে আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক বলেন, বিএনপির আন্দোলনের হুমকি আর তাদের তর্জন গর্জনই সার। বিএনপির আন্দোলনের বার্তা হচ্ছে যারা দশ বছরে আন্দোলন করতে পারে নি, তারা আগামী দু’মাসেও পারবে না। আগামী নির্বাচনে আওয়ামী লীগের জোটের সমীকরণ সম্পর্কে জানতে চাইলে তিনি বলেন, বিএনপি নির্বাচনে এলে জোটের সমীকরণ এক ধরনের হবে, আর না এলে আরেক ধরনের হবে। তারা নির্বাচনে এলে জোটের আসন বন্টন ও সমঝোতার বিষয়ে সিদ্ধান্ত নেওয়া হবে। ওবায়দুল কাদের বলেন, রাজনৈতিক মেরুকরণের ওপর আওয়ামী লীগের জোটের সমীকরণ নির্ভর করছে। যেভাবে রাজনৈতিক মেরুকরণ হবে সেভাবে আমাদের জোটেরও সমীকরণ হবে। আওয়ামী লীগের ঢাকা-নীলফামারী ট্রেনযাত্রার সমালোচনা করে কয়েকটি গণমাধ্যমের খবরের সমালোচনা করে আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক বলেন, কোটা বিরোধী আন্দোলন ও শিক্ষার্থীদের নিরাপদ সড়কের দাবিতে আন্দোলনে গণমাধ্যমের একটি অংশের ভূমিকা উস্কানীমূলক ছিল। আর বিএনপির আন্দোলনের মাঠে না থাকলেও গণমাধ্যমের ওই অংশটি তাদের উস্কানি দিয়েছে। তিনি বলেন, সাধারণ মানুষের দুর্ভোগের কথা বিবেচনা করে আমরা দলীয় কর্মসূচি শুক্রবার ও শনিবার সরকারি ছুটির দিনে করে থাকি। কিন্তু বিএনপি নয়াপল্টনের দলীয় কার্যালয়ের সামনে ঘন্টার পর ঘন্টা রাস্তা বন্ধ করে যে সভা-সমাবেশ করে সেখানে কি মানুষের দুর্ভোগ হয় না। সোমবার জাতীয় প্রেসক্লাবের সামনে যে সমাবেশ করেছে সেখানে মানুষের দুর্ভোগ হয় নি? সে বিষয়ে তো তারা কোন সংবাদ প্রকাশ করেননি। দেশের রাজনীতিতে বিদেশী কূটনৈতিকদের ভূমিকার বিষয়ে জানতে চাইলে ওবায়দুল কাদের বলেন, দেশের সংবিধানের আওতার মধ্যে কূটনৈতিকদের প্রয়াস যতটা সহনীয়, ততটাই আমরা গ্রহন করি। আমাদের দেশ একটি গণতান্ত্রিক দেশ। সংবিধানের বাইরে কেউ কোন আচারণ করলে সেটা কোন গণতান্ত্রিক দেশ মানে না। তিনি বলেন, আমাদের দেশের সার্বভৌমত্ব যাতে ক্ষুণœ না হয়, সে রকম প্রয়াস কূটনীতিকরা যাতে না চালান সেটাই আমরা প্রত্যাশা করি। দলের কর্মসূচি প্রসঙ্গে তিনি বলেন, সরকারের উন্নয়ন কর্মকান্ড তৃনমূলে তুলে ধরতে আওয়ামী লীগের আগামী ১৩ সেপ্টেম্বর লঞ্চযোগে পটুয়াখালী ও বরগুনা এবং ২২ সেপ্টেম্বর সড়কপথে চট্টগ্রামে যাওয়ার কর্মসূচি আছে।

বিশ্বে অতি ধনীর সংখ্যা বৃদ্ধির তালিকায় শীর্ষে বাংলাদেশ

ঢাকা অফিস ॥ বিশ্বে অতি ধনীর সংখ্যা দ্রুত বৃদ্ধির তালিকায় শীর্ষে রয়েছে বাংলাদেশ। যুক্তরাজ্য ভিত্তিক বিশ্বব্যাপী সম্পদ ও মার্কেট গবেষণা প্রতিষ্ঠান ওয়েলথ এক্সের প্রতিবেদনে এ তথ্য জানা যায়। গবেষণা প্রতিষ্ঠানটি বলছে, বাংলাদেশে ১৭ দশমিক তিন শতাংশ হারে অতি ধনীর সংখ্যা বাড়ছে। দ্বিতীয় স্থানে আছে চীন। সেখানে অতি ধনীর সংখ্যা বাড়ছে ১৩ দশমিক ৪ শতাংশ হারে। এরপর আছে যথাক্রমে ভিয়েতনাম, কেনিয়া, ভারত, হংকং, আয়ারল্যান্ড, ইসরাইল এবং পাকিস্তান। নিজস্ব ‘ওয়েলথ অ্যান্ড ইনভেস্টেবল অ্যাসেটস মডেল’ ব্যবহার করে প্রতিবেদনটি তৈরি করেছে ওয়েলথ এক্স। এ মডেলের মাধ্যমে ব্যক্তিগত মোট সম্পদের আনুমানিক তথ্য পাওয়া যায়। গত সপ্তাহে ধনীদের ওপর সর্বশেষ রিপোর্টটি প্রকাশ করে গবেষণা প্রতিষ্ঠানটি। এতে দেখা যাচ্ছে বিশ্বে অতি ধনী মানুষের সংখ্যা সবচেয়ে বেশি যুক্তরাষ্ট্রে। প্রায় ৮০ হাজারের মত। আর দ্বিতীয় স্থানে আছে জাপান। তাদের অতি ধনীর সংখ্যা ১৮ হাজার। চীন আছে তৃতীয় স্থানে। দেশটির প্রায় ১৭ হাজার মানুষ অতি ধনী। প্রথম দশটি দেশের তালিকায় আরও আছে জার্মানি, কানাডা, ফ্রান্স, হংকং, যুক্তরাজ্য, সুইজারল্যান্ড ও ইতালি। অতি ধনী বা ‘আলট্রা হাই নেট ওয়ার্থ’ (ইউএইচএনডাব্লিউ) বলা হয় তাদেরকে যাদের সম্পদের পরিমাণ তিন কোটি ডলার বা তার চেয়ে বেশি। সে অনুযায়ী বাংলাদেশি টাকায় যাদের সম্পদ আড়াইশো কোটি টাকার বেশি তারাই অতি ধনী। আর এই ধনীর সংখ্যা দ্রুত হারে বাড়ার ক্ষেত্রে বিশ্বে সবার উপরে আছে বাংলাদেশ। দ্বিতীয় স্থানে আছে চীন। ওয়েলথ এক্স বলছে, যদি বিশ্ব পরিসরে লক্ষ্য করা হয়, তাহলে অবাক করার বিষয় হচ্ছে, ধনীদের সম্পদ বাড়ার ক্ষেত্রে চীন এখন আর শীর্ষে নেই। সেখানে সবার চেয়ে এগিয়ে বাংলাদেশ। ২০১২ সাল হতে এ পর্যন্ত বাংলাদেশে প্রতি বছর ১৭ শতাংশ হারে অতি ধনীর সংখ্যা বেড়েছে। আর প্রতিবেশী ভারতের ধনীদের সম্পদ বাড়ছে বার্ষিক ১০ দশমিক ৭ শতাংশ হারে। সূত্র: বিবিসি

 

খালেদা জিয়ার মুক্তি দাবিতে আজ প্রতীকী অনশন বিএনপির

ঢাকা অফিস ॥ দলীয় চেয়ারপারসন খালেদা জিয়ার মুক্তি দাবিতে আজ বুধবার সারাদেশে প্রতীকী অনশন করবে বিএনপি। তবে ঢাকায় কোথায় এই কর্মসূচি পালিত হবে, তা মঙ্গলবার পর্যন্ত নিশ্চিত করতে পারেননি দলটির নেতারা। এদিন দুপুরে নয়া পল্টনে দলীয় কার্যালয়ে এক সংবাদ সম্মেলনে বিএনপির জ্যেষ্ঠ যুগ্ম মহাসচিব রুহুল কবির রিজভী বলেন, “আমরা মহানগর নাটমঞ্চ অথবা রমনার ইঞ্জিনিয়ার্স ইন্সটিটিউশন প্রাঙ্গণের জন্য অনুমতি চেয়েছি। আশা করছি, যে কোনো একটার অনুমতি আমরা পেয়ে যাব।” সকাল ১০টা থেকে দুপুর ১২টা পর্যন্ত ঢাকাসহ সারাদেশে মহানগর ও জেলা সদরে এই অনশন হবে বলে তিনি জানান।

কারাবন্দি খালেদাকে ইউনাইটেড হাসপাতালে স্থানান্তরের দাবিও জানান রিজভী।

তিনি বলেন, “দেশনেত্রীর শারীরিক অবস্থা দিন দিন অবনতির দিকে যাচ্ছে। তার ব্যক্তিগত চিকিৎসকরা বলেছেন, দ্রুত চিকিৎসা না দেয়া হলে তার বাম পা ও হাত অবশ হয়ে যেতে পারে।” বিএনপি মহাসচিব স্বরাষ্ট্রমন্ত্রীর সঙ্গে দেখা করার দুদিন পরও সরকারের কোনো উদ্যোগ না দেখে ক্ষোভ প্রকাশ করে রিজভী বলেন, “তার (দেশনেত্রী) চিকিৎসা নিয়ে ছলচাতুরি চলছে এবং কালক্ষেপণ করা হচ্ছে বলে আমরা মনে করি।” খালেদা জিয়ার মুক্তি ও সুচিকিৎসার দাবিতে সোমবার সারাদেশে গ্রেপ্তার বিএনপির নেতা-কর্মীদের মুক্তির দাবি জানানো হয় সংবাদ সম্মেলনে। রিজভী বলেন, সারাদেশে তিন শতাধিক নেতা-কর্মীকে পুলিশ গ্রেপ্তার করেছে, এর মধ্যে ২৭৫ জন ঢাকার। তিনি বলেন, “মানববন্ধনের মতো শান্তিপূর্ণ কর্মসূচিতে এভাবে গ্রেপ্তারের ঘটনা পরিকল্পিত। তারা (পুলিশ) কর্মসূচি করতে অনুমতি দিলেন, শান্তিপূর্ণ একটা মানববন্ধন নেতৃবৃন্দ দাঁড়িয়ে বক্তব্য দিয়েছেন। সেটিকে বানচাল করানোর জন্য প্রত্যক্ষ ও পরোক্ষ দমননীতি চালালো সরকার। দেশজুড়ে এই ন্যক্কারজনক ঘটনার নিন্দা ও প্রতিবাদের ঝড় বইছে।” মানববন্ধন কর্মসূচির পর থেকে দলের জাতীয় নির্বাহী কমিটির সদস্য আবু বকর সিদ্দিকী নিখোঁজ জানিয়ে রিজভী বলেন, “নিশ্চয়ই তিনি সরকারি কোনো বাহিনীর নিকটেই আছে। আমি অবিলম্বে তাকে জনসমক্ষে হাজির করার জন্য জোর দাবি জানাচ্ছি।” সংবাদ সম্মেলনে দলের চেয়ারপারসনের উপদেষ্টা পরিষদের সদস্য কবীর মুরাদ, যুগ্ম মহাসচিব খায়রুল কবির খোকন, কেন্দ্রীয় নেতা হাবিবুল ইসলাম হাবিব, আবুল কালাম আজাদ সিদ্দিকী, মুনির হোসেন, আবদুল আউয়াল খান, সাইফুল ইসলাম পটু উপস্থিত ছিলেন।

জামায়াতকে নিয়ে ঐক্য হলে ‘যাবেন না’ ড. কামাল

ঢাকা অফিস ॥ গণফোরাম সভাপতি ড. কামাল হোসেন বলেছেন, জামায়াতে ইসলামীকে সঙ্গে নিয়ে কোনো ‘বৃহত্তর ঐক্যে’ তিনি যাবেন না। গতকাল মঙ্গলবার এক সংবাদ সম্মেলনে ড. কামাল বলেন, “সারা জীবন যেটা আমি করিনি, শেষ জীবনে সেটা করতে যাব কেন?” আওয়ামী লীগ ছেড়ে আসা কামাল হোসেন এবং বিএনপি ছেড়ে আসা এ কিউ এম বদরুদ্দোজা চৌধুরী ঐক্যবদ্ধ হয়ে কাজ করার ঘোষণা দেন গত মাসের শেষে। কামালের গণফোরাম, বদরুদ্দোজার বিকল্পধারার সঙ্গে মাহমুদুর রহমান মান্নার নাগরিক ঐক্য এবং আ স ম রবের জেএসডি রয়েছে এই ‘জাতীয় ঐক্য’ গঠনের প্রক্রিয়ায়। তাদের একসঙ্গে কাজ করার ঘোষণাকে স্বাগত জানিয়ে বিএনপি বলেছে, সুষ্ঠু নির্বাচনের দাবিতে তাদের জাতীয় ঐক্যের প্রক্রিয়া ‘জাতীয় রাজনৈতিক ঐক্যে’ রূপান্তরিত হবে বলে দলটি আশা করছে। অন্যদিকে তাদের এই ভোটভুক্ত হওয়ার উদ্যোগকে আওয়ামী লীগ সভানেত্রী প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা বর্ণনা করেছেন ‘আওয়ামী লীগবিরোধীদের’ এক জায়গায় আসার চেষ্টা হিসেবে। সংবাদ সম্মেলনে ড. কামালের কাছে জানতে চাওয়া হয়েছিল- জামায়াতকে রেখে বিএনপির সঙ্গে কোনো ‘বৃহত্তর ঐক্যে’ তিনি যাবেন কিনা। উত্তরে তিনি বলেন, “আমি ও আমাদের দল যাবে না। অন্য কোনো দল করবে কিনা আমি জানি না। তবে আমি যতটুকু জানি, ওরা (জামায়াতে ইসলামী) তো এখন দলও না, ইতোমধ্যে তাদের নিবন্ধন বাতিল করা হয়েছে।” নির্বাচনের আগে ‘বৃহত্তর ঐক্য’ গড়ার কাজ কতটা এগিয়েছে জানতে চাইলে কামাল বলেন, “এই ঐক্যের কাজ আগাচ্ছে, ঐক্য গড়ে উঠছে, আগাচ্ছে। আমরা সেটাকে ইতিবাচক হিসেবে দেখতে চাই ।” আগামী ২২ সেপ্টেম্বর ঢাকার গুলিস্তানের মহানগর নাট্যমঞ্চে সমাবেশের অনুমতি পাওয়ার কথাও জানান কামাল হোসেন।

জিয়া দাতব্য ট্রাস্ট মামলার বিচারে ঢাকার একটি বিশেষ জজ আদালতকে পুরনো কেন্দ্রীয় কারাগারে স্থানান্তরের সিদ্ধান্ত ‘সংবিধানসম্মত হয়নি’ বলে মনে করেন কামাল হোসেন। এ বিষয়ে এক প্রশ্নের জবাবে তিনি বলেন, “আমার ধারণা এটা তারা আদালতে চ্যালেঞ্জ করবে। আদালত এটার বিচার করবে। আমি আদালতে গেলে এটাই বলব, এটা সংবিধানসম্মত না।” জিয়া এতিমখানা দুর্নীতি মামলায় পাঁচ বছরের কারাদন্ডপ্রাপ্ত খালেদা জিয়া গত ৮ ফেব্র“য়ারি থেকে ঢাকার পুরনো কেন্দ্রীয় কারাগারে বন্দি। জিয়া দাতব্য ট্রাস্ট মামলার শুনানি শেষ করতে কারাগারের ভেতরেই আদালত বসিয়ে তার বিচারের ব্যবস্থা করেছে সরকার। কামাল বলেন, “বিরোধী দলীয় নেত্রীকে আটক করেছেন। তার ব্যাপারে জেলখানায় বিচার-টিচার- এসব ঠিক নয়। বলা হচ্ছে কর্নেল তাহেরের উদাহরণ। সামরিক শাসনে সেই বিচার হয়েছে। ৪১ বছরের আগের উদাহরণ একটা দিয়ে এটা (আদালত স্থানান্তর) করার কোনো যুক্তি থাকতে পারে না।” এই সিদ্ধান্ত শেষ পর্যন্ত সরকারের ‘পক্ষে যাবে না’ বলেও মন্তব্য করেন সুপ্রিম কোর্টের এই আইনজীবী। জাতীয় প্রেসক্লাবের কনফারেন্স লাউঞ্জে গণফোরামের উদ্যোগে আয়োজিত এই সংবাদ সম্মেলনে অন্যদের মধ্যে গণফোরামের নির্বাহী সভাপতি সুব্রত চৌধুরী, কেন্দ্রীয় নেতা জগলুল হায়দার আফ্রিক, আওম শফিক উল্লাহ, সাইদুর রহমান, মোশতাক আহমদ, জাতীয় ঐক্য প্রক্রিয়ার সদস্য সচিব আবম মোস্তফা আমিন উপস্থিত ছিলেন।

 

৪৫% মহার্ঘ ভাতা পাবেন সাংবাদিকরা

ঢাকা অফিস ॥ সংবাদপত্র ও বার্তা সংস্থার কর্মীদের জন্য মূল বেতনের ৪৫ শতাংশ মহার্ঘ ভাতা ঘোষণা করেছে সরকার, যা গত ১ মার্চ থেকে কার্যকর ধরা হয়েছে। সাংবাদিকদের নতুন বেতন কাঠামো নির্ধারণে নবম ওয়েজ বোর্ড গঠনের সাত মাস ১৩ দিন পর এই মহার্ঘ ভাতা ঘোষণা করে মঙ্গলবার আদেশ জারি করেছে তথ্য মন্ত্রণালয়। সেখানে বলা হয়েছে, “নবম মজুরি বোর্ডের পেশ করা অন্তর্বর্তীকালীন প্রতিবেদন পরীক্ষান্তে সরকার সংবাদপত্র ও সংবাদ সংস্থাগুলোতে নিয়োজিত সাংবাদিক, প্রেস শ্রমিক ও সাধারণ কর্মীদের জন্য মূল বেতন (অষ্টম মজুরি বোর্ড ঘোষিত) ৪৫ শতাংশ হারে অন্তর্বর্তীকালীন মহার্ঘ ভাতা ঘোষণা করল। অন্তর্বর্তীকালীন এই সুবিধা পরবর্তীতে ঘোষিতব্য সামগ্রিক বেতন কাঠামোর সঙ্গে সমন্বয় করা হবে।” আপিল বিভাগের অবসরপ্রাপ্ত বিচারপতি মো. নিজামুল হককে প্রধান করে গত ২৯ জানুয়ারি ১৩ সদস্যের নবম ওয়েজবোর্ড গঠন করে সরকার। এই বোর্ডকে ছয় মাস অর্থাৎ গত ২৯ জুলাইয়ের মধ্যে সরকারের কাছে সুপারিশ করতে বলা হয়েছিল। নির্ধারিত সময়ে ওয়েজবোর্ড সুপারিশ করতে না পারায় বোর্ডের মেয়াদ তিন মাস বাড়ানো হয়। সংবাদিকদের নতুন বেতন কাঠামো নির্ধারণে ২০১২ সালের ১৮ জুন অষ্টম ওয়েজ বোর্ড গঠন করেছিল সরকার। এর কয়েক মাস পর ৫০ শতাংশ মহার্ঘ্যভাতার ঘোষণা দেওয়া হয়, যা ২০১২ সালের ১ জুলাই থেকে কার্যকর ধরা হয়। ২০১৫ সালে সরকারি কর্মচারীদের নতুন বেতন কাঠামো ঘোষণার পর থেকে নতুন বেতন কাঠামোর দাবি জানিয়ে আসছিলেন সাংবাদিকদের সংগঠনগুলো। এই দাবিতে দীর্ঘ দিন কর্মসূচিও পালন করে তারা।

১৭ হাজার ৭৮৬ কোটি ব্যয়ে ১৮ প্রকল্পের অনুমোদন

ঢাকা অফিস ॥ শহরের স্বাস্থ্য সেবা সম্প্রসারণের লক্ষ্যে গৃহীত আরবান প্রাইমারি হেলথ কেয়ার সার্ভিসেস ডেলিভারি প্রকল্পসহ মোট ১৮টি প্রকল্পের চূড়ান্ত অনুমোদন দিয়েছে জাতীয় অর্থনৈতিক পরিষদের নির্বাহী কমিটি (একনেক)। এসব প্রকল্পে বাস্তবায়নে মোট খরচ ধরা হয়েছে ১৭ হাজার ৭৮৬ কোটি ৯৫ লাখ টাকা। এর মধ্যে সরকারি তহবিল থেকে ১৩ হাজার ৮১৩ কোটি ৪৪ লাখ টাকা, বাস্তবায়নকারী সংস্থার নিজস্ব অর্থায়ন ৪২ কোটি ৬২ লাখ টাকা এবং বৈদেশিক সহায়তা থেকে পাওয়া যাবে ৩ হাজার ৯৩০ কোটি ৮৯ লাখ টাকা। গতকাল মঙ্গলবার রাজধানীর শেরেবাংলানগর এনইসি সম্মেলন কক্ষে একনেক চেয়ারপারসন ও প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার সভাপতিত্বে অনুষ্ঠিত একনেক বৈঠকে এই অনুমোদন দেওয়া হয়। বৈঠক শেষে পরিকল্পনামন্ত্রী আ হ ম মুস্তাফা কামাল প্রকল্প সম্পর্কে সাংবাদিকদের ব্রিফ করেন। তিনি বলেন, আরবান প্রাইমারি হেলথ কেয়ার সার্ভিসেস ডেলিভারি প্রকল্পের আওতাভুক্ত এলাকায় প্রাথমিক স্বাস্থ্যসেবা প্রদানে আর্থিক ও ভৌত অভিগম্যতার উন্নয়ন করা হবে। যাতে নগরবাসীদের জন্য মানসম্মত প্রাথমিক স্বাস্থ্যসেবা এবং মাতৃ ও শিশু স্বাস্থ্য সম্পর্কিত অপরিহার্য সেবা প্যাকেজের মাধ্যমে গরীবদের সেবা নিশ্চিত করা যায়। তিনি জানান, প্রাথমিক স্বাস্থ্যসেবা গ্রহীতার সংখ্যা বৃদ্ধির জন্য দরিদ্র মহিলা, নবজাতক ও শিশুদের প্রাথমিক স্বাস্থ্যসেবা প্রদান এবং প্রকল্প এলাকায় প্রাথমিক স্বাস্থ্যসেবাদানকারি প্রতিষ্ঠানের প্রাতিষ্ঠানিক ব্যবস্থা শক্তিশালী করা হবে। আরবান প্রাইমারি হেলথ কেয়ার সার্ভিসেস ডেলিভারি প্রকল্প বাস্তবায়নে ব্যয় হবে ১ হাজার ১৩৬ কোটি টাকা। পরিকল্পনামন্ত্রী বলেন, চীনের হোয়াংহো নদীর মতো বিপদজনক নদী যদি শাসন করা যায়। তাহলে আমরা কেন আমাদের নদীগুলোকে শাসন করতে পারবো না। আমাদের দেশের প্রত্যেকটা নদী পর্যায়ক্রমে শাসন করা হবে। এ জন্য অনেক প্রকল্প নেওয়া হচ্ছে। তিনি মনে করেন বন্যা না হলে দেশে যে খাদ্যশস্য আছে, তা দিয়েই জনগণের খাদ্য চাহিদা পুরোটা মিটবে। মন্ত্রী জানান, প্রধানমন্ত্রী নির্দেশনা দিয়ে বলেছেন, নতুনভাবে নির্মাণ হতে যাওয়া বধ্যভূমিগুলোর গায়ে লেখা থাকবে চিরঞ্জিব মুক্তিযোদ্ধারা, যারা এখানে শুয়ে আছেন। তিনি আরো জানান, প্রত্যেক সংসদীয় আসনে ৬টি করে মাদ্রাসার উন্নয়ন করা হবে। এ ছাড়া বিশেষ বিবেচনায় আরো ২০০টি মাদ্রাসার উন্নয়ন করা হবে। এক প্রশ্নের উত্তরে মন্ত্রী বলেন, দেশের পরিবহন ও যোগাযোগ ব্যবস্থার ব্যাপক উন্নয়ন হয়েছে। ফলে পণ্য সরবরাহে কোন সমস্যা নেই। তাই আগামী মাসগুলোতেও মূল্যস্ফীতি বাড়বে না। একনেকে অনুমোদন পাওয়া অন্য প্রকল্পগুলো হচ্ছে-রুরাল ট্রান্সপোর্ট ইমপ্রুভমেন্ট প্রজেক্ট-২, এই প্রকল্পের বাস্তবায়ন খরচ ধরা হয়েছে ৪ হাজার ৮১৯ কোটি ৭০ লাখ টাকা। পটুয়াখালী জেলার লোহালিয়া নদীর ওপর নির্মানাধীন পিসি গার্ডার ব্রিজের অমাপ্ত র্নির্মাণ কাজ সমাপ্তকরণ প্রকল্পে ব্যয় হবে ১০২ কোটি টাকা। ফরিদপুর জেলার আড়িয়াল খাঁ নদী তীর সংরক্ষণ ও ড্রেজিং প্রকল্পের খরচ ধরা হয়েছে ২৯১ কোটি ৪৯ লাখ টাকা। নোয়াখালী, ফেনী, লক্ষèীপুর, চট্টগ্রাম ও চাঁদপুর কৃষি উন্নয়ন প্রকল্পে হবে ৬৯ কোটি ৪৩ লাখ টাকা। বিদ্যুত বিতরণ ব্যবস্থা উন্নয়ন প্রকল্প, চট্টগ্রাম জোনের খরচ ধরা হয়েছে ১ হাজার ৪২১ কোটি ৪৮ লাখ টাকা। বাংলাদেশ স্ট্যান্ডার্ডস এন্ড টেস্টিং ইনস্টিটিউশন (বিএসটিআই) সম্প্রসারণ ও শক্তিশালীকরণ প্রকল্পের খরচ ধরা হয়েছে ৫১ কোটি ৪৫ লাখ টাকা। পাবনা বিজ্ঞান ও প্রযুক্তি বিশ^বিদ্যালয়ের উন্নয়ন প্রকল্পে ব্যয় হবে ৪৮০ কোটি ৬০ লাখ টাকা। সাভারস্থ পরমাণু শক্তি গবেষণা প্রতিষ্ঠানের ৩ মেগাওয়াট ক্ষমতা সম্পন্ন গবেষণা রিঅ্যাক্টর ফ্যাসিলিটির সেফটি সিস্টেমের সমন্বয় সাধন, আধুনিকীকরণ, রক্ষণাবেক্ষণ ও বর্ধিতকরণ প্রকল্পের খরচ ধরা হয়েছে ৭৪ কোটি ৯৫ লাখ টাকা। জামালপুর জেলার ৮টি পৌরসভার ভৌত অবকাঠামো উন্নয়ন প্রকল্পের খরচ ধরা হয়েছে ৬১২ কোটি ৮৬ লাখ টাকা। রাজশাহী ওয়াসার ভূ-উপরিস্থত পানি শোধনাগারের জন্য জমি অধিগ্রহণ প্রকল্পের খরচ ধরা হয়েছে ৭৮ কোটি ৬৯ লাখ টাকা। এ ছাড়া পুরাতন ঢাকা কেন্দ্রীয় কারাগারের ইতিহাস, ঐতিহাসিক ভবন সংরক্ষণ ও পারিপাশির্^ক উন্নয়ন প্রকল্পের খরচ ধরা হয়েছে ৬০৭ কোটি ৩৬ লাখ টাকা। ১৯৭১এ মহান মুক্তিযুদ্ধ চলাকালে পাকিস্তানি হানাদার বাহিনী কর্তৃক গণহত্যার জন্য ব্যবহৃত বধ্যভুমিসমূহ সংরক্ষণ ও স্মৃতিস্তম্ভ নির্মাণ প্রকল্পে ব্যয় হবে ৪৪২ কোটি ৪০ লাখ টাকা।পাঁচুরিয়া-ফরিদপুর-ভাঙ্গা রেলপথ পুনর্বাসন ও নির্মাণ প্রকল্পের খরচ ধরা হয়েছে ৩৪৭ কোটি ৩১ লাখ টাকা। জামালপুর-ধানুয়া-কামালপুর-রৌমারী-দাঁতভাঙ্গা জেলা মহাসড়ক প্রশস্তকরণ ও মজবুতিকরণ প্রকল্পের খরচ ধরা হয়েছে ৩৩২ কোটি ১০ লাখ টাকা। বাংলাদেশের ১৩টি নদী বন্দরের প্রথম শ্রেনীর আবহাওয়া পর্যবেক্ষণাগার শক্তিশালীকরণ প্রকল্পের খরচ ধরা হয়েছে ৮০ কোটি ৫০ লাখ টাকা। কারিগরি ও মাদ্রাসা শিক্ষা বিভাগের নির্বাচিত মাদ্রাসাগুলোর উন্নয়ন প্রকল্পে ব্যয় হবে ৫ হাজার ৯১৮ কোটি ৬৩ লাখ টাকা। বরিশাল বিভাগ পল্লী অবকাঠামো উন্নয়ন প্রকল্পের খরচ ধরা হয়েছে ৯২০ কোটি টাকা।