৭১’র পরাজিত শক্ররা এখনও সক্রিয় রয়েছে, আমরা ঐক্যবদ্ধ থাকলে তারা আর আঘাত হানতে পারবেনা

দৌলতপুর আওয়ামী লীগের শোকসভায় এমপি বাদশা

শরীফুল ইসলাম ॥ কুষ্টিয়া-১ দৌলতপর আসনের সংসদ সদস্য এ্যাড. আ. কা. ম সরওয়ার জাহান বাদশা দৌলতপুর আওয়ামী লীগের শোক সভায় প্রধান অতিথির বক্তব্যে বলেছেন, স্বাধীনতার পরজিত শক্র জাতির পিতা বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানকে হত্যা করে বাংলাদেশ থেকে তাঁর নাম মুছে ফেলতে চেয়েছিল কিন্তু তা সম্ভব হয়নি। বাংলাদেশের প্রতিটি মানুষের হৃদয়ে বঙ্গবন্ধুর নাম গাঁথা রয়েছে। তিনি বলেন, আমারা ঐক্যবদ্ধ আছি এবং ভালবাসার সংগঠন আওয়ামী লীগের সাথে আছি। কিন্তু ৭১’র পরাজিত শক্ররা এখনও সক্রিয় রয়েছে, আমরা ঐক্যবদ্ধ থাকলে ওই পরাজিত শক্ররা আর আঘাত হানতে পারবেনা। তাই নিজেদের মধ্যে বিভেদ যেন সৃষ্টি না হয় সেদিকে সজাগ থাকতে হবে। এমপি বাদশা বলেন, বঙ্গবন্ধু কন্যা বাংলাদেশের প্রধানমন্ত্রী জননেত্রী শেখ হাসিনাকে ঘাতকের দল ১৯বার হত্যার চেষ্টা করেছে। কিন্তু তা পারেনি কারন শেখ হাসিনা মানে আওয়ামী লীগ আর শেখ হাসিনা তার কর্মের মাধ্যমে প্রমান করেছে আওয়ামী লীগ সাধারণ মানুষের দল। তিনি আরও বলেন, ৩০ লক্ষ শহীদের রক্তর ঋণ, ২ লক্ষ মানুষের সম্ভ্রমহানি আর কোটি মানুষ গৃহহারা হওয়ার মধ্যদিয়ে বঙ্গবন্ধুর ডাকে ও তাঁর নেতৃত্বে এদেশ স্বাধীন হয়। অথচ সেই স্বাধীন দেশে ঘাতকের দল ১৫ আগষ্ট জাতির পিতা বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানকে স্বপরিবারে হত্যার পর প্রধানমন্ত্রী জননেত্রী শেখ হাসিনাকে হত্যার উদ্দেশ্যে ২১আগষ্ট গ্রেনেড হামলা চালিয়েছিল। সেদিন জননেত্রী শেখ হাসিনা প্রানে বাঁচলে ঘাতকদের গ্রেনেডে শহীদ হয়েছেন আইভি রহমানসহ ২৪ জন আওয়ামী লীগ নেতা আর ৫’শ জন নেতা-কর্মী স্পি­ন্টারের ক্ষত বয়ে বেড়াচ্ছেন। সরওয়ার জাহান বাদশা এমপি দৌলতপুর আওয়ামী লীগকে শক্তিশালী ও সংগঠিত করে এবং ঐক্যবদ্ধ থেকে আগামী দিনেও শেখ হাসিনার নেতৃত্বে দেশের উন্নয়নের ধারা অব্যাহত রাখার আহ্বান জানিয়ে বলেন, মনে রাখতে হবে জননেত্রী শেখ হাসিনা আছে বলে আমরা বেঁেচ আছি। সবশেষে এমপি বাদশা ৭৫’র ১৫ আগষ্ট ও ২০০৪’র ২১ আগষ্ট গ্রেনেড হামলায় শহীদদের প্রতি গভীর শ্রদ্ধা ও সমবেদনা জানিয়ে উপস্থিত দৌলতপুর আওয়ামী লীগ, যুবলীগ, ছাত্রলীগ ও স্বেচ্ছাসেবকলীগসহ অঙ্গসংগঠনের নেতা ও কর্মীদের প্রতি কৃতজ্ঞতা জানিয়ে বক্তব্য শেষ করেন। গতকাল বৃহস্পতিবার বিকেল ৪টায় দৌলতপুর উপজেলা পরিষদ মিলনায়তনে জাতীয় শোক দিবস ও ২১ আগষ্ট গ্রেনেড হামলা দিবসের শহীদদের স্মরণে দৌলতপুর আওয়ামী লীগের শোক সভায় এমপি সরওয়ার জাহান বাদশা এসব কথা বলেন। দৌলতপুর আওয়ামী লীগের সভাপতি প্রবীন আওয়ামী লীগ সাবেক এমপি নেতা আফাজ উদ্দিন আহমেদের সভাপতিত্বে শোকসভায় প্রধান বিশেষ অতিথি ছিলেন, দৌলতপুর আওয়ামী লীগের সহ-সভাপতি সাবেক এমপি আলহাজ¦ রেজাউল হক চৌধুরী, দৌলতপুর আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক এ্যাড. শরীফ উদ্দিন রিমন। শোক সভায় বক্তব্য রাখেন দৌলতপুর আওয়ামী লীগের যুগ্মসাধারণ সম্পাদক সাইফুল ইসলাম শেলি দেওয়ান, উপজেলা পরিষদের সাবেক চেয়ারম্যান ফিরোজ আল মামুন, দৌলতপুর আওয়ামী লীগের শিক্ষা বিষয়ক সম্পাদক অধ্যক্ষ ছাদিকুজ্জামান খান সুমন, দৌলতপুর আওয়ামী লীগে তথ্য গবেষনা সম্পাদক টিপু নেওয়াজ, জেলা মুক্তিযোদ্ধা কমান্ডের সাবেক ডেপুটি কমান্ডার আলহাজ¦ নজরুল ইসলাম, দৌলতপুর যুবলীগের সাধারণ সম্পাদক আব্দুল কাদের, জেলা পরিষদের সদস্য নাসির উদ্দিন মাষ্টার, পিয়ারপুর ইউপি চেয়ারম্যান আবু ইউসুফ লালু, জেলা পরিষদ সদস্য মায়াবী রোমাঞ্চ মল্লিক, দৌলতপুর স্বেচ্ছাসেবক লীগের সভাপতি মরিচা ইউপি চেয়ারম্যান শাহ আলমগীর, দৌলতপুর যুবলীগ নেতা ওয়াসিম কবিরাজ ও দৌলতপুর ছাত্রলীগের আহ্বায়ক চঞ্চল হোসেনসহ দৌলতপুর আওয়ামী লীগ, যুবলীগ, ছাত্রলীগ ও অঙ্গসংগঠনের নেতৃবৃন্দ। দৌলতপুর আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক এ্যাড. শরীফ উদ্দিন রিমন শোক সভা পরিচালনা করেন। শোকসভায় দৌলতপুর উপজেলার বিভিন্ন ইউনিয়ন থেকে আওয়ামী লীগ ও অঙ্গ সংগঠনের কয়েক হাজার নেতা-কর্মী অংশ নেয়। উপজেলা পরিষদ মাঠে শোকসভা হওয়ার কথা থাকলেও বৈরী আবহওয়ার কারনে পরে উপজেলা পরিষদ মিলনায়তনে এ শোকসভা অনুষ্ঠিত হয়। দৌলতপুর আওয়ামী লীগের এ শোক সভায় দৌলতপুর উপজেলা আওয়ামী লীগের সর্বস্তরের নেতা-কর্মীদের স্বত:স্ফূর্ত উপস্থিতি দৌলতপুর আওয়ামী লীগ ঐক্যবদ্ধ তা প্রমান হয়েছে বলে নেতা-কর্মীদের বক্তব্যে তা উঠে এসেছে।

আরো খবর...