স্বাস্থ্যবিধি মানা না হলে ব্যবস্থা – নৌ-প্রতিমন্ত্রী

ঢাকা অফিস ॥ নৌ যোগাযোগে স্বাস্থ্যবিধির কোনো ব্যত্যয় ঘটলে সংশ্লিষ্টদের বিরুদ্ধে ব্যবস্থা নেয়া হবে বলে জানিয়েছেন নৌপরিবহন প্রতিমন্ত্রী খালিদ মাহমুদ চৌধুরী। তিনি বলেন, কোনো ব্যক্তির অবহেলার জন্য ১৬ কোটি মানুষের বাংলাদেশ ঝুঁকির মধ্যে পড়তে পারে না। বাংলাদেশকে আমাদের নিরাপদ রাখতে হবে। গতকাল রোববার রাজধানীর সদরঘাটে লঞ্চ চলাচল ও যাত্রী সুরক্ষার সার্বিক প্রস্তুতি পর্যবেক্ষণ এবং জীবাণুনাশক টানেল উদ্বোধন শেষে সাংবাদিকদের এসব কথা বলেন প্রতিমন্ত্রী। লঞ্চের ভাড়া বাড়ানো নিয়ে সাংবাদিকদের প্রশ্নের জবাবে তিনি বলেন, ভাড়া বৃদ্ধি নিয়ে আলোচনা চলছে। বিআইডব্লিউটিএর অধীনে একটি কমিটি কাজ করছে। তাদের পরামর্শ অনুযায়ী ব্যবস্থা নেয়া হবে। তবে লঞ্চ মালিক ও শ্রমিকদের বিষয়টি আমরা অনুভব করি। এভাবে সীমিত পরিসরে যাত্রী পরিবহন করলে আমরা ক্ষতির সম্মুখীন হবো কি-না সেটাও বিবেচনায় আছে। সরকারেরও দায়িত্ববোধ আছে তাদের বিষয়টি দেখার। কমিটির সুপারিশ যথাযথ হলে বিবেচনা করা হবে। এর জন্য অপেক্ষা করতে হবে। কিছুটা ঝুঁকির কথা স্বীকার করে প্রতিমন্ত্রী বলেন, এ সময়ে যাত্রী পরিবহনে কিছুটা ঝুঁকি থেকেই যায়। তবে এটাই শেষ সিদ্ধান্ত নয়। সরকার ১৫ দিন সময় বেঁধে দিয়েছে। জনগণ ও দেশের কথা চিন্তা করে, সব বিশ্লেষণ করে সরকার সিদ্ধান্ত নেবে। এ সময় গত মার্চ থেকে মন্ত্রণালয়ের গৃহীত বিভিন্ন স্বাস্থ্য সুরক্ষা কার্যক্রম তুলে ধরেন তিনি। এর আগে জীবাণুনাশক টানেল উদ্বোধন করে লঞ্চের স্বাস্থ্য সুরক্ষার বিভিন্ন দিক ঘুরে দেখেন প্রতিমন্ত্রী। তার সঙ্গে আরও উপস্থিত ছিলেন বিআইডব্লিউটিএর চেয়ারম্যান কমডোর গোলাম সাদেক, বিআইডব্লিউটিসির চেয়ারম্যান খাজা মিয়া, নৌ পরিবহন অধিদফতরের মহাপরিচালক কমডোর সৈয়দ আরিফুল ইসলাম প্রমুখ।

 

আরো খবর...