সুনামগঞ্জে ৫ বছরের শিশুকে নৃশংশভাবে হত্যা

ঢাকা অফিস ॥ সুনামগঞ্জের দিরাইয়ে পাঁচ বছরের এক শিশুকে নৃশংসভাবে হত্যা করে লাশ গাছে ঝুলিয়ে রাখা হয়েছে। গতকাল সেমাবার দিরাই থানার ওসি কে এম নজরুল জানান, গত রাতে এ হত্যাকান্ডের শিকার শিশু তুহিন রাজানগর ইউনিয়নের কেজাউড়া গ্রামের কৃষক আবদুল বাসিতের ছেলে। নিহতের স্বজনদের উদ্ধৃত করে ওসি জানান, গত রোববার রাতের খাবার খেয়ে ঘুমিয়ে পড়ে ওই পরিবারের সদস্যরা। রাত ৩টার দিকে তুহিনের চাচাত বোন সাবিনা বেগম ঘরের দরজা খোলা দেখে চিৎকার শুরু করে। চিৎকার শুনে পরিবারের সদস্যরা ঘুম থেকে উঠে দেখে তুহিন ঘরে নেই। খুঁজোখুঁজি করে বাড়ি থেকে কিছু দূরে মসজিদের পাশে একটি গাছের সাথে ঝুলন্ত অবস্থায় তার লাশ পাওয়া যায়। ঘটনাস্থলে পৌঁছে পুলিশ লাশ উদ্ধারের সময় শিশুটির পেটে দুইটি ছুরি গাঁথা রয়েছে দেখতে পায় বলে জানান ওসি। শিশুটির আত্মীয় ইমরান হোসেন জানান, খুনিরা শিশুটির কান ও লিঙ্গ কেটে নিয়েছে। হত্যার পর তাকে গাছে ঝুলিয়ে দিয়েছে। কারা এ ঘটনা ঘটিয়েছে, সে বিষয়ে তাৎক্ষণিকভাবে কোনো ধারণা দিতে পারেনি পুলিশ। তবে জিজ্ঞাসাবাদের জন্য শিশুটির বাবাসহ সাতজনকে আটক করেছে পুলিশ। গতকাল সেমাবার দুপুরে তাদের আটক করে থানায় নিয়ে যাওয়া হয়। আটকরা হলেন- তুহিনের চাচা আব্দুল মছব্বির, জমশেদ মিয়া, নাসির মিয়া, জাকিরুল তুহিনের বাবা আব্দুল বাছির, চাচী ও চাচাতো বোনের নাম জানা যায়নি। সুনামগঞ্জের পুলিশ সুপার মিজানুর রহমান বলেন, জিজ্ঞাসাবাদের জন্য সাতজনকে থানায় নেওয়া হয়েছে। জিজ্ঞাসাবাদ শেষে সন্দেহজনক কিছু মনে না হলে তাদের ছেড়ে দেওয়া হবে।

আরো খবর...