সহজে ব্যবসা করার সূচকে অগ্রগতি

বিশ্বব্যাংকের ‘ডুইং বিজনেস ২০২০’ সূচকে সবচেয়ে ভালো অবস্থানে থাকা ২০টি দেশের মধ্যে রয়েছে বাংলাদেশের নাম। এই সূচকে এবার বাংলাদেশের অবস্থান ১৬৮তম। ব্যবসাবান্ধব সূচকে গত বছরের চেয়ে আট ধাপ এগিয়েছে বাংলাদেশ। বাংলাদেশের আট ধাপ অগ্রগতি অবশ্যই ইতিবাচক। বড় সুখবর হলো, যারা রেগুলেটরি সংস্কারে এগিয়ে আছে, সেই ২০টি দেশের তালিকায় রয়েছে বাংলাদেশ। এই উন্নতি এ বিষয়ে সরকারের সদিচ্ছার বহিঃপ্রকাশ। বর্তমান সূচকে বাংলাদেশের গড় পয়েন্ট ৪৫.০, যা গতবারের চেয়ে ৩.০৩ পয়েন্ট বেশি। বাংলাদেশ গত বছর এগিয়েছিল মাত্র এক ধাপ। গত কয়েক বছরে দু-এক ধাপ এগিয়েছে বা পিছিয়েছে। এবার অগ্রগতি চোখে পড়ার মতো। এবার যে ২০টি দেশ সংস্কারে এগিয়েছে, তাদের মধ্যেও রয়েছে বাংলাদেশ। যদিও বৈশ্বিক এমনকি দক্ষিণ এশিয়ার বিচারে এখনো পেছনের সারিতে। দক্ষিণ এশিয়ায় আফগানিস্তান ছাড়া বাকিরা বাংলাদেশের চেয়ে এগিয়ে। এবার ভারতের ১৪ ধাপ উন্নতি হয়ে অবস্থান ৬৩তম। পাকিস্তান ১৩৬ থেকে ১০৮তম অবস্থানে গেছে। বিশ্বব্যাংক বাংলাদেশ প্রসঙ্গে বলেছে, মূলত তিনটি ধাপে বড় অগ্রগতি হওয়ায় বাংলাদেশ এগিয়েছে। ব্যবসা প্রতিষ্ঠানের রেজিস্ট্রেশন ফি কমানো এবং ডিজিটাল সার্টিফিকেট ফি তুলে দেয়ায় ব্যবসা শুরুর জন্য খরচ কমেছে। আগের বছরের তুলনায় বিদ্যুৎ সংযোগ আরো দ্রুত হয়েছে। এ ছাড়া নতুন বিদ্যুৎ সংযোগ পেতে জামানতের পরিমাণ কমানো হয়েছে। ঋণ গ্রহণের তথ্য পাওয়ার পদ্ধতি অনেক সহজ ও উন্নত হয়েছে। এ বিষয়কে বাংলাদেশের ব্যবসা সহজীকরণে বড় অগ্রগতি বলেছে বিশ্বব্যাংক। বাংলাদেশের অর্থনৈতিক অগ্রগতি এখন বিশ্বের অনেক দেশের জন্যই উদাহরণ। অর্থনীতি ও আর্থসামাজিক বেশির ভাগ সূচকে বাংলাদেশ ছাড়িয়ে গেছে দক্ষিণ এশিয়ার প্রায় সব দেশকে। নিম্ন আয়ের দেশগুলোকে ছাড়িয়েছে তো অনেক আগেই। স্বল্পোন্নত দেশের তালিকা থেকে বেরিয়ে বাংলাদেশ এখন নিম্ন-মধ্যম আয়ের দেশ। এগিয়ে যাচ্ছে উন্নয়নশীল দেশ হওয়ার পথে। অর্থনৈতিক প্রবৃদ্ধি ও উন্নয়নের বর্তমান ধারা অব্যাহত থাকলে ২০২৪ সালের মধ্যে বাংলাদেশ পৌঁছে যাবে উন্নয়নশীল দেশের কাতারে। তবে দেশের অন্যতম দুর্বলতা হলো সংস্কার উদ্যোগ বাস্তবায়নে অনেক সময় দেরি হয়ে যায়। সংশ্লিষ্ট মন্ত্রণালয়গুলোর মধ্যেও সমন্বয়ের অভাব রয়েছে। এসব বিষয়ে নজর দিতে হবে। আগামীতে কোম্পানি আইন, দেউলিয়া আইন এবং বাণিজ্যিক আদালত সংক্রান্ত সংস্কার বাস্তবায়নে যেতে হবে। এসব বিষয়ে সংস্কার হলে বাংলাদেশের অবস্থান ১২০-এর নিচে আনা যাবে। আমরা আশা করি, সামনের দিনগুলোতেও বাংলাদেশের এই অগ্রযাত্রা অব্যাহত থাকবে এবং আগামী বছর সহজে ব্যবসা কারা সূচকে বাংলাদেশের অবস্থান অনেক উপরে উঠে আসবে।

আরো খবর...