শ্রীলঙ্কাকে গুঁড়িয়ে হিলির রেকর্ড

ক্রীড়া প্রতিবেদক ॥ দিন দুয়েক আগে স্পর্শ করেছেন শততম টি-টোয়েন্টি ম্যাচ খেলার মাইলফলক। ম্যাচের সেঞ্চুরি হলেও ব্যাট হাতে এতদিন ছিল না কোনো সেঞ্চুরি। সেই স্বাদ অ্যালিসা হিলি পেলেন নিজের ১০১তম ম্যাচে। প্রথম সেঞ্চুরিটাকে করে রাখলেন অবিস্মরণীয়। শ্রীলঙ্কার বোলিং গুঁড়িয়ে দিয়ে খেললেন মেয়েদের টি-টোয়েন্টি ক্রিকেটের সর্বোচ্চ ইনিংস। লঙ্কানদের বিপক্ষে সিরিজের তৃতীয় ও শেষ টি-টোয়েন্টি ম্যাচে ৬১ বলে ১৪৮ রানের অপরাজিত ইনিংস খেলেন অস্ট্রেলিয়ার এই কিপার-ব্যাটার। ভাঙেন স্বদেশি মেগ ল্যানিংয়ের ১৩৩ রানের রেকর্ড। গত জুলাইয়ে ইংল্যান্ডের বিপক্ষে চেমসফোর্ডে ইনিংসটি খেলেছিলেন ল্যানিং। নর্থ সিডনি ওভালে বুধবার টস জিতে আগে ব্যাটিং করতে নেমে শুরু থেকেই শ্রীলঙ্কান বোলারদের উপর চড়াও হন হিলি। ২৫ বলে পৌঁছে যান ফিফটিতে। আর পঞ্চাশ থেকে তিন অঙ্ক ছুঁতে খেলেন মাত্র ২১ বল। ৪৬ বলে করা তার সেঞ্চুরিটি শুধু মেয়েদের ক্রিকেটেই নয়, সামগ্রিকভাবেই কোনো অস্ট্রেলিয়ানের দ্রুততম টি-টোয়েন্টি সেঞ্চুরি। নারী টি-টোয়েন্টিতে সবচেয়ে দ্রুততম সেঞ্চুরিটি ওয়েস্ট ইন্ডিজের দিয়েন্দ্রা ডটিনের। ২০১০ সালে মেয়েদের টি-টোয়েন্টি বিশ্বকাপে দক্ষিণ আফ্রিকার বিপক্ষে ৩৮ বলে রেকর্ডটি গড়েছিলেন তিনি। দলীয় ইনিংসের ১৯তম ওভারে তিনটি চার ও একটি ছক্কায় ১৮ রান নিয়ে ল্যানিংয়ের রেকর্ডটি নিজের করে নেন হিলি। ক্রিজের অন্যপাশে তখন হিলির সঙ্গী ল্যানিং স্বয়ং! ১৯ চার ও ৭টি ছক্কায় সাজানো হিলির ইনিংসে ২০ ওভার শেষে অস্ট্রেলিয়ার সংগ্রহ দাঁড়ায় ২ উইকেটে ২২৬। দ্বিতীয় সর্বোচ্চ ৪১ রানের ইনিংস খেলেন তিনে নামা র‌্যাচেল হেইন্স। পাহাড়সম লক্ষ্য তাড়ায় নেমে লঙ্কানরা একরকম অসহায় আত্মসমর্পণ করে। ২০ ওভারে ৭ উইকেট হারিয়ে তারা তোলে মাত্র ৯৪ রান। ১৩২ রানের এই জয় রানের ব্যবধানে টি-টোয়েন্টি ক্রিকেটে অস্ট্রেলিয়া নারী দলের সবচেয়ে বড় জয়। তিন ম্যাচের সিরিজটি তারা জিতল ৩-০ ব্যবধানে।

 

আরো খবর...