লকডাউন অমান্যকারীদের ‘গুলি করে মারতে’ বললেন দুতার্তে

ঢাকা অফিস ॥ লকডাউনের নির্দেশনা অমান্যকারীরা কোনো ধরনের সমস্যা সৃষ্টি করলে তাদেরকে আইনশৃঙ্খলা রক্ষাকারী বাহিনীর গুলির মুখোমুখি হতে হবে বলে সতর্ক করেছেন ফিলিপিন্সের প্রেসিডেন্ট রড্রিগো দুতার্তে। স্বাস্থ্যকর্মীদের লাঞ্ছনা ও নির্যাতনকে ভয়াবহ অপরাধ হিসেবে বিবেচনায় নিয়ে কোনোক্রমেই তা সহ্য করা হবে না বলেও হুঁশিয়ারি দিয়েছেন তিনি। বুধবার রাতে টেলিভিশনে দেশবাসীর উদ্দেশ্যে দেওয়া ভাষণে দুতার্তে এসব বলেছেন বলে জানিয়েছে বার্তা সংস্থা রয়টার্স। ফিলিপিন্সের প্রেসিডেন্ট বলেছেন, সবার সহযোগিতা এবং কোয়ারেন্টিনের নির্দেশনা মেনে চলাই এই মুহুর্তে সবচেয়ে গুরুত্বপূর্ণ। দেশটিতে এখন পর্যন্ত দুই হাজার ৩১১ জনের দেহে করোনাভাইরাস শনাক্ত হয়েছে; মৃতের সংখ্যা পৌঁছেছে ৯৬-তে। আক্রান্তদের তিন জন বাদে বাকি সবাই গত তিন সপ্তাহে শনাক্ত হয়েছে। দক্ষিণপূর্ব এশিয়ার এ দেশটিতে এখন প্রতিদিনই শতাধিক আক্রান্তের সন্ধান মিলছে। “পরিস্থিতি খারাপ হচ্ছে। যে কারণে আরও একবার সংকটের গুরুত্ব নিয়ে বলছি যেন আপনারা শোনেন। পুলিশ ও সেনাবাহিনীর প্রতি আমার নির্দেশ হচ্ছে, যদি কোনো সমস্যা দেখা দেয়, যদি এমন পরিস্থিতি আসে যে তারা (লকডাউন অমান্যকারীরা) পাল্টা আঘাত হানছে আর আপনাদের জীবন বিপদাপন্ন, তাহলে গুলি করে মেরে ফেলুন তাদের। “ বোঝা গেছে ব্যাপারটা? মেরে ফেলুন। ঝামেলা সৃষ্টির বদলে আমি আপনাদের কবর দেবো,” টেলিভিশনে দেওয়া ভাষণে বলেছেন দুতার্তে। সরকারের দেওয়া অপ্রতুল খাদ্য সাহায্য নিয়ে বুধবার ম্যানিলার দরিদ্র অঞ্চলের বাসিন্দাদের বিক্ষোভকে কেন্দ্র করে বিশৃঙ্খলা ও বেশ ক’জনকে গ্রেপ্তারের খবর দিয়েছে ফিলিপিন্সের গণমাধ্যমগুলো, এর পরপরই দুতার্তের এ হুঁশিয়ারি এলো। ফিলিপিন্সে সামাজিক কুসংস্কার ও বর্তমান পরিস্থিতির কারণে স্বাস্থ্যকর্মীদের ওপর যে ধরনের নির্যাতন ও বৈষম্য চলছে তা নিয়ে চিকিৎসক মহলে বেশ ক্ষোভ আছে বলেও গণমাধ্যমগুলো জানিয়েছে। ভাষণে স্বাস্থ্য কর্মীদের নির্যাতনের বিরুদ্ধেও প্রেসিডেন্ট সাবধান করেছেন। বলেছেন, এগুলো অবশ্যই বন্ধ করতে হবে। সমালোচকরা দুতার্তের এমন ‘গরম গরম’ কথায় ক্ষুব্ধ প্রতিক্রিয়া ব্যক্ত করেছেন। ফিলিপিন্সের প্রেসিডেন্ট তার মাদকবিরোধী যুদ্ধের মতো এ ক্ষেত্রেও সহিংসতা ও নজরদারিকে ডেকে আনছেন, অভিযোগ তাদের। দুতার্তের ওই মাদকবিরোধী যুদ্ধে পুলিশ ও রহস্যময় বন্দুকধারীদের হাতে কয়েক হাজার মানুষ নিহত হয়েছে বলে অভিযোগ রয়েছে। পুলিশ অবশ্য এসব অভিযোগ উড়িয়ে দিয়েছে। মাদকবিরোধী অভিযানে তাদের পদক্ষেপগুলো আইনসম্মত ছিল বলে দাবি তাদের। টেলিভিশনে দেওয়া ভাষণে দুতার্তে লকডাউন অমান্যকারীদের ‘গুলি করে মারতে’ বললেও তার কার্যালয় বলছে, প্রেসিডেন্ট পরিস্থিতির গুরুত্ব বোঝাতেই ওই শব্দগুলো ব্যবহার করেছেন। বৃহস্পতিবার দেশটির পুলিশ প্রধান বলেছেন, নির্দেশনা মানাতে দুতার্তের কঠোর অবস্থান বুঝতে পেরেছেন তারা। তবে কাউকেই গুলি করা হবে না বলে আশ্বস্ত করেছেন তিনি।

আরো খবর...