রেলে যুক্ত হচ্ছে দ্রুতগতির ট্রেন- রেলমন্ত্রী

ঢাকা অফিস ॥ রেলমন্ত্রী নূরুল ইসলাম সুজন বলেছেন, চীন-ভারতসহ অনেক দেশে বর্তমানে রেলের আধুনিক যোগাযোগ ব্যবস্থা গড়ে উঠেছে। সেখানে দ্রুতগতির অত্যাধুনিক সব ট্রেন চলাচল করে। চীনের রেলের উন্নতি করতে ৭০ বছর সময় লেগেছে। কিন্তু আমাদের ৭০ বছর লাগবে না, আমরা শিগগিরই রেলে দ্রুতগতির আধুনিক ট্রেন যুক্ত করতে পারবো। আগামী ৩/৪ বছরের মধ্যে আমরা ঢাকা-চট্টগ্রাম দ্রুত গতির ট্রেন চালু করার পরিকল্পণা হতে নিয়েছি বলে জানান রেলমন্ত্রী। বৃহস্পতিবার দুপুরে রাজধানীর কাকরাইলে অবস্থিত ডিপ্লোমা ইঞ্জিনিয়ার্স ইনস্টিটিউশনে বাংলাদেশ রেলওয়ে শ্রমিক লীগের দ্বি-বার্ষিক সম্মেলনে প্রধান অতিথির বক্তব্যে তিনি এসব কথা জানান। রেলওয়ে শ্রমিক লীগের নেতাদের উদ্দেশ্যে তিনি বলেন, আপনারা নেতা হিসেবে আপনাদের ওপরে যে দায়িত্ব অর্পণ করা হয়, সেটি যথাযথভাবে সততার সঙ্গে পালন করুন। তাহলেই রেলের উন্নতি হবে। আপনারাই যদি রেলওয়ের জায়গা দখল করে বিল্ডিং করে ভাড়া দেন, তাহলে রেলওয়ের উন্নতি কোনোদিন-ই হবে না। আপনারা ঐক্যবদ্ধ থেকে নিজেদের দায়িত্ব পালনের মাধ্যমে প্রধানমন্ত্রীর রেলওয়েকে আধুনিক করার পরিকল্পনায় সহযোগিতা করেন। এসময় তিনি রেলের বেদখলী জমি দখলমুক্ত করা হবে বলে ঘোষনা দেন। মন্ত্রী বলেন, পশ্চিমাঞ্চলের ট্রেনের ধীর গতি ও সিডিউল বিপর্যয় রোধ করতে আরেকটি বঙ্গবন্ধু রেলসেতু নির্মাণ করা হবে। যাতে করে একটি সেতুর ওপর চাপ কমে এবং ট্রেনের আর অপেক্ষা করিয়ে রাখতে না হয়। সুজন বলেন, রেলপথে যাত্রীদের সুবিধার জন্য আমরা যত ট্রেন বাড়াচ্ছি, ততোই সমস্যা  তৈরি হচ্ছে সিঙ্গেল লাইন থাকার কারণে। তাই জয়দেবপুর থেকে ঈশ্বরদী, জয়দেবপুর থেকে ময়মনসিংহ হয়ে জামালপুর পর্যন্ত, লাকসাম থেকে আখাউড়া পর্যন্ত ডাবল লাইন নির্মাণের প্রকল্প গ্রহণ করা হয়েছে। সম্মেলনের উদ্বোধন করেন শ্রম ও কর্মসংস্থান মন্ত্রণালয়ের প্রতিমন্ত্রী বেগম মন্নুজান সুফিয়ান। বাংলাদেশ রেলওয়ে শ্রমিক লীগের সভাপতি অ্যাডভোকেট মো. হুমায়ুন কবিরের সভাপতিত্বে ও সাধারণ সম্পাদক মো. হাবিবুর রহমান আকন্দের পরিচালনায় আয়োজিত সম্মেলনে বিশেষ অতিথি হিসেবে বক্তব্য রাখেন- জাতীয় শ্রমিক লীগের সভাপতি শুক্কুর মাহমুদ, জাতীয় শ্রমিক লীগের কার্যকরী সভাপতি ফজলুল হক মন্টু। এছাড়াও বক্তব্য রাখেন জাতীয় শ্রমিক লীগ ও বাংলাদেশ রেলওয়ে শ্রমিক লীগের কেন্দ্রীয় নেতারা। সম্মেলনের আলোচনা সভা শেষে বিকেলে দ্বিতীয় অধিবেশনে নির্বাচনের মাধ্যমে রেলওয়ে শ্রমিক লীগের আগামী দিনের নেতৃত্ব নির্বাচন করা হবে। দ্বিতীয় অধিবেশনে সভাপতিত্ব করবেন নির্বাচন পরিচালনা উপ কমিটির চেয়ারম্যান শুক্কুর মাহমুদ।

আরো খবর...