রূপপুর পারমানবিক বিদ্যুৎ প্রকল্প হবে জাতীয় মহাবিপদের প্রকল্প

কুষ্টিয়ায় মত বিনিময়কালে অধ্যাপক আনু মুহাম্মদ

“প্রাণ-প্রকৃতি, পরিবেশ ও জাতীয় সম্পদ রক্ষার আন্দোলন বেগবান করুন” শ্লোগানকে ধারণ করে সরকারের ব্যয়বহুল ঋণ নির্ভর ও পরিবেশ বিধ্বংসী বিদ্যুৎ মহাপরিকল্পনার বিপরীতে জাতীয় কমিটির সামগ্রীক প্রস্তাবনা, ভুলনীতি ও দুর্নীতির দায় জনগণের উপর  চাপাতেই দফায় দফায় বিদ্যুতের মূল্য বৃদ্ধি করা হচ্ছে এবং রামপাল ও রূপপুর বিদ্যুৎ প্রকল্প কার স্বার্থে ? শীর্ষক মতবিনিময় সভা অনুষ্ঠিত হয়েছে।  গতকাল মঙ্গলবার বিকেল ৪টায় কুষ্টিয়া হাই স্কুল মিলনায়তনে তেল-গ্যাস, খনিজ সম্পদ ও বিদ্যুৎ বন্দর রক্ষা জাতীয় কমিটি কুষ্টিয়া জেলা শাখার আয়োজনে কমিটির আহ্বায়ক এ্যাড. মীর আরশেদ আলীর সভাপতিত্বে অনুষ্ঠিত মতবিনিময় সভায় প্রধান আলোচক হিসেবে উপস্থিত ছিলেন জাতীয় কমিটির কেন্দীয় সদস্য সচিব অধ্যাপক আনু মুহাম্মদ। এসময় প্রধান আলোচক তেল-গ্যাস, খনিজ সম্পদ ও বিদ্যুৎ বন্দর রক্ষা জাতীয় কমিটির সদস্য সচিব বলেন, ঈশ^রদীর রূপপুর পারমানবিক বিদ্যুৎ প্রকল্প হবে জাতীয় মহাবিপদের প্রকল্প। বিশে^র যেসব দেশে এজাতীয় প্রকল্প স্থাপন করেছিলো তারা পরবর্তীতে এর জীবনধ্বংসী নেতিবাচক প্রভাবে শিকার হয়ে তারা ওইসব প্রকল্প বন্ধ করে দিয়েছেন। এসব প্রকল্প স্থাপনে যে সব অঞ্চল ও আয়তন বিবেচনায় রেখে স্থাপন করার পরও নিজেদের রক্ষা করতে না পেরে অবশেষে বন্ধ করে দিতে বাধ্য হয়েছে এবং মানব সভ্যতা ধ্বংসে আগ্রাসী প্রকল্প হিসেবে চিহ্নিত করেছে তারা। ঠিক সেই সময় আমাদের দেশে এই প্রকল্প নতুন করে কোন প্রকার শর্ত বিবেচনা না করেই রূপপুর প্রকল্প স্থাপন করা হচ্ছে; যা এ অঞ্চলের বিস্তীর্ণ এলাকাজুড়ে জীবনধ্বংসী বিরান ভুমিতে পরিনত করবে। সেই সাথে এই প্রকল্প বাস্তবায়নে রাশিয়ার সাথে সম্পাদিত চুক্তির শর্তানুযায়ী একদিকে রাশিয়া ও ভারত তাদের ব্যবসায়িক স্বার্থসিদ্ধি করবে ঠিকই অপরদিকে বাংলাদেশকে বইতে হবে বিশাল এক ঋণের বোঝা। তিনি বলেন, তেল-গ্যাস, খনিজ সম্পদ ও বিদ্যুৎ বন্দর রক্ষা জাতীয় কমিটির দেয়া সামগ্রীক প্রস্তাবনার আলোকে বাস্তবায়নের মধ্যদিয়ে দেশের বিদ্যুৎ ও জ¦ালানী খাতের নাগরিক সেবা আরও সুলভে ও কম খরচে দেশবাসীর দোরগোড়ায় পৌছে দেয়া সম্ভব। অথচ সরকার সেদিকে নজর না দিয়ে উল্টা অযৌক্তিকভাবে গ্যাস ও বিদ্যুতের মূল্য বৃদ্ধির সিদ্ধান্ত চাপিয়ে দিয়ে জনজীবনকে নাভিশ^াস করে তুলছেন। এসময় সেখানে উপস্থিত জাতীয় কমিটি কুষ্টিয়া জেলার শাখার নেতৃবৃন্দ ছাড়াও বক্তব্য রাখেন, কুষ্টিয়া ইসলামী বিশ^বিদ্যালয়ের অর্থনীতি বিভাগের অধ্যাপক মুঈদ রহমান, জাতীয় কমিটি কুষ্টিয়া জেলার শাখার সাবেক আহ্বায়ক বীর মুক্তিযোদ্ধা এ্যাড. জহুরুল ইসলাম, বাসদ কুষ্টিয়া জেলা আহ্বায়ক কমরেড শফিউর রহমান শফি, সদস্য সচিব মাসুদ হাসান, সিপিবি কুষ্টিয়ার সাধারণ সম্পাদক হেলাল উদ্দিন, জাতীয় গণফ্রন্ট কুষ্টিয়ার আহ্বায়ক আজিজুর রহমান জালাল প্রমুখ। এছাড়াও সেখানে বিভিন্ন পেশাজীবী, রাজনৈতিক, সামাজিক ও সাংস্কৃতিক সংগঠনের নেতৃবৃন্দ উপস্থিত ছিলেন। এসময় বক্তারা বিদ্যুৎ গ্যাসের মূল্যবৃদ্ধিকে গণবিরোধী, জনগণের দুর্ভোগ বাড়িয়ে কার্যত: আইএমএফ- বিশ্ব ব্যাংক এবং  দেশি-বিদেশি এজেন্টদের খুশি করার প্রজেক্ট হিসেবে আখ্যায়িত করেছেন। সংবাদ বিজ্ঞপ্তি

আরো খবর...