রুদ্ধশ্বাস ম্যাচে প্রাইম দোলেশ্বরের জয়

ক্রীড়া প্রতিবেদক ॥ রুদ্ধশ্বাস ম্যাচে প্রাইম দোলেশ্বর স্পোর্টিং ক্লাবের জয়। ফতুল্লাহ খান সাহেব ওসমান আলী স্টেডিয়ামে ২৩৮ রানের টার্গেট তাড়া করতে নেমে তীরে গিয়ে তরী ডুবায় ব্রাদার্স ইউনিয়ন। মাত্র ৮ রানের জন্য হেরে যায় জুনায়েদ সিদ্দিকীরা। ওপেনিংয়ে ব্যাটিংয়ে নেমে ইনিংসের শেষ ওভার পর্যন্ত খেলেও দলকে জয় উপহার দিতে পারেননি জুনায়েদ সিদ্দিকী। জাতীয় দলের সাবেক এ ওপেনারের ব্যাটে ভর করেই জয়ের স্বপ্ন দেখেছিল ব্রাদার্স। কিন্তু শেষ তিন বলে ৯ রান নিতে গিয়ে এলবিডব্লিউ হয়ে ফেরেন জুনায়েদ। তার বিদায়ে জয়ের স্বপ্ন ভেস্তে যায় ব্রাদার্সের। ১২৫ বলে ৬টি চারের সাহায্যে দলের হয়ে সর্বোচ্চ ৯৭ রান করেন জুনায়েদ। এ ছাড়া ৫১ রান করেন তুষার ইমরান। ৩১ রান করেন রাহাতুল ফেরদৌস। রোববার ফতুল্লাহ স্টেডিয়ামে টস হেরে প্রথমে ব্যাটিংয়ে নেমে তাইবুর রহমানের সেঞ্চুরিতে ৭ উইকেটে ২৩৮ রান করে প্রাইম দোলেশ্বর। দলের হয়ে ৯৪ বলে সাতটি চার ও পাঁচটি ছক্কায় অপরাজিত সর্বোচ্চ ১১০ রান করেন তাইবুর। এ ছাড়া ৩৪ রান করেন ইমরান উজ্জামান। ২৩ রান করেন এনামুল হক জুনিয়র। টার্গেট তাড়া করতে নেমে ৩৫ রানে দুই উইকেট হারিয়ে চাপে পড়ে যায় ব্রাদার্স। তৃতীয় উইকেটে তুষার ইমরানের সঙ্গে ৯২ রানের জুটি গড়েন জুনায়েদ সিদ্দিকী। এরপর ৯ রানের ব্যবধানে নেই তুষার ইমরান, আব্দুল কাইয়ুম ও জাহিদুজ্জামানের উইকেট। ষষ্ঠ উইকেটে রাহাতুল ফেরদৌসের সঙ্গে ফের ৫৮ রানের জুটি গড়েন জুনায়েদ। তাদের এই জুটিই দলকে জয়ের স্বপ্ন দেখিয়ে ছিল। কিন্তু এরপর ব্যাটিং বিপর্যয়ে পড়ে যায় ব্রাদার্স। ৫ উইকেটে ১৯৪ রান করা দলটি এরপর ৩৬ রানের ব্যবধানে পাঁচ উইকেট হারিয়ে জয়ের দুয়ারে গিয়ে হোঁচট খায়। সংক্ষিপ্ত স্কোর প্রাইম দোলেশ্বর: ৫০ ওভারে ২৩৮/৭ (তাইবুর ১১০*, ইমরান উজ্জামান ৩৪, মার্শাল আইয়ুব ২৬, এনামুল হক জুনিয়র ২৩)। ব্রাদার্স ইউনিয়ন: ৪৯.৪ ওভারে ২৩০/১০ (জুনায়েদ ৯৭, তুষার ইমরান ৫১, রাহাতুল ফেরদৌস ৩১; রেজাউর রহমান ৪/৩৬)। ফল: প্রাইম দোলেশ্বর ৮ রানে জয়ী।

আরো খবর...