যে কোন মূল্যে আমরা মাদক নির্মূল করবো

মিরপুরে শিক্ষাবৃত্তি, বিভিন্ন উপকরন ও ক্রীড়া সামগ্রী বিতরনকালে এসএম তানভীর আরাফাত

কাঞ্চন কুমার ॥ কুষ্টিয়ার মিরপুরে শিক্ষা প্রতিষ্ঠান ও ক্লাবের মাঝে ক্রীড়া সামগ্রী, গরীব ও মেধাবী শিক্ষার্থীদের শিক্ষাবৃত্তি, ছাত্রীদের মাঝে বাইসাইকেল, প্রশিক্ষিত ও দুস্থ্য মহিলাদের মাঝে সেলাই মেশিন, কৃষকদের মাঝে বীজ, যুবকের মাঝে যুবঋণ ও নলকুপ বিতরণ অনুষ্ঠান অনুষ্ঠিত হয়েছে।  গতকাল বুধবার বেলা ১১টায় মিরপুর উপজেলা পরিষদ অডিটোরিয়ামে উপজেলা পরিষদ ও প্রশাসনের যৌথ উদ্যোগে এ অনুষ্ঠান অনুষ্ঠিত হয়। মিরপুর উপজেলা আওয়ামী লীগের সাধারন সম্পাদক ও উপজেলা পরিষদের চেয়ারম্যান কামারুল আরেফিনের সভাপতিত্বে প্রধান অতিথি ছিলেন কুষ্টিয়ার পুলিশ সুপার এসএম তানভীর আরাফাত (পিপিএম)। প্রধান অতিথির বক্তব্যে পুলিশ সুপার বলেন, বর্তমান সরকার শিক্ষাখাতে সর্বাধিক গুরুত্ব দিয়েছে। সেই লক্ষ্যে কাজ করে যাচ্ছে। দরিদ্র-মেধাবী শিক্ষার্থীরা যাতে ঝরে না যায়, সে জন্য সরকার উপবৃত্তি চালু করেছে। এছাড়া, সরকারের বড় সাফল্য হচ্ছে বছরের শুরুতে সকল শিক্ষার্থীদের হাতে বই তুলে দেয়া। তিনি শিক্ষার্থীদের উদ্দেশ্যে বলেন, পড়াশোনার পাশাপাশি  খেলাধুলায় সাধারণ শিক্ষার্থীরা মনোনিবেশ করতে পারলে দেশ ও জাতি পাবে সুনাগরিক। যারা আমাদের এ সোনার বাংলাকে এগিয়ে নিয়ে যাবে। বাংলাদেশ স্বাধীনের স্বপ্ন ছিল সোনার বাংলা গড়ার, আর সেই সোনার বাংলা গড়ার কারিগর হচ্ছে শিক্ষার্থীরা। তাই তোমাদের উপযুক্ত শিক্ষায় শিক্ষিত হতে হবে। তিনি মাদক সম্পর্কে বলেন, যে মাদক গ্রহণ করে বা বিক্রি করে তারা সমাজের কীট। আমরা চাই না আমাদের আগামী প্রজন্মকে কোন কীটময় সমাজে রেখে যেতে। যে কোন মূল্যে আমরা মাদক নির্মূল করবো। মাদকের যে গডফাদার থাকুক, সে পুলিশ বা যে কোন বাহিনীতেই থাকুক, রাজনৈতিক নেতা হোক না কেনো, সে যেই হোক, কাউকে কিন্তু ছাড় দেওয়া হবে না। মাদক ব্যবসায়ীর বড় পরিচয় হলো সে মাদকের সাথে জড়িত। মাদক ব্যবসায়ী কার ভাই, কার আত্মীয়, কার চাচা সেটা দেখবো না। এখনো সাবধান করে দিচ্ছি ভালো হয়ে যান। না হলে আইনের সর্বোচ্চ শাস্তি মাদক কারবারীদের জন্য প্রস্তুত। পুলিশ সুপার নারী নির্যাতন বিষয়ে বলেন, নারী নির্যাতনের বিরুদ্ধে দেশে আইনের কোনো ঘাটতি নেই। তারপরও নির্যাতন হচ্ছে। আইনের যথাযথ প্রয়োগের পাশাপাশি নারীর অর্থনৈতিক ক্ষমতায়ন, সমাজে নারীর প্রতি নেতিবাচক দৃষ্টিভঙ্গি পাল্টাতে হবে। এ ক্ষেত্রে সরকারের সদিচ্ছার পাশাপাশি প্রতিটি স্তরে জবাবদিহি বাড়াতে হবে। পুলিশ সুপার তানভীর আরাফাত  আরো বলেন, কোন নারী নির্যাতনকারী, ধর্ষনকারীর স্থান কুষ্টিয়ায় হবে না। তাদের সর্বোচ্চ শাস্তি দেয়া হবে। আমার সবচেয়ে খারাপ লাগে যখন একজন শিক্ষক হয়ে শিক্ষার্থীদের যৌন হয়রানি করে। এমন শিক্ষক কুষ্টিয়ায় থাকবে না। দুর্নীতি নির্মুল সম্পর্কে পুলিশ সুপার বলেন, একটি দেশের উন্নয়নের সবচেয়ে বড় বাধা হলো দুর্নীতি। দেশের উন্নয়নের স্বার্থে দেশ থেকে দুর্নীতি নির্মূল করতে হবে। সরকার দুর্নীতি দমনে জিরো ট্রলারেন্স ঘোষণা করেছেন। যারা সরকারী কর্মকর্তা রয়েছেন আপনারা ভালো করে শুনে রাখুন, দুর্নীতি করে অবৈধ সম্পদের মালিক হচ্ছেন এই সম্পদের হিসাব দেওয়া লাগবে। এতে শুধু আপনার নিজের উন্নয়ন হচ্ছে, দেশের উন্নয়ন না। কোন সরকারী কর্মকর্তা, কোন পুলিশ সদস্য যদি দুর্নীতি করে সে যেই হোক দুদকের কাছে তথ্য দিন। যদি না পারেন তাহলে আমার কাছে তথ্য দিন। শিক্ষকদের উদ্দেশ্যে পুলিশ সুপার বলেন, আপনারা জাতীর বিবেক। আপনাদের মধ্যে কিছু অসৎ মানুষ আছেন। আপনারাও ভালো হয়ে যান। আপনারা প্রতিটি ক্লাসে না পারেন অন্তত সপ্তাহে একদিন হলেও মাদক, নারী নির্যাতন, সন্ত্রাস, জঙ্গিবাদ, দুর্নীতির কুফল সম্পর্কে শিক্ষার্থীদের বোঝান। পিতা-মাতার কথা ছেলে মেয়েরা না মানলেও শিক্ষকদের কথা তারা মানে। সমাজ থেকে মাদক, নারী নির্যাতন, সন্ত্রাস, জঙ্গিবাদ, দুর্নীতি ধ্বংস করতে আপনাদের সহযোগিতা কাম্য। এসময় উপজেলা মাধ্যমিক শিক্ষা অফিসার জুলফিকার হায়দারের পরিচালনায় বিশেষ অতিথির বক্তব্য রাখেন মিরপুর উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা এসএম জামাল আহম্মেদ, উপজেলা পরিষদের ভাইস-চেয়ারম্যান আবুল কাশেম জোয়ার্দ্দার, মহিলা ভাইস-চেয়ারম্যান মর্জিনা খাতুন, পৌর মেয়র এনামুল হক, মিরপুর থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) আবুল কালাম প্রমুখ। এসময় উপজেলার বিভিন্ন ইউনিয়ন পরিষদের চেয়ারম্যানবৃন্দ, উপজেলার সকল সরকারী দপ্তরের প্রধানগণ, বিভিন্ন শিক্ষা প্রতিষ্ঠানের প্রধানগন, শিক্ষার্থীগণ উপস্থিত ছিলেন। অনুষ্ঠান শেষে অতিথিবৃন্দরা উপজেলার ১শ’ ৫৯ জন গরীব ও মেধাবী শিক্ষার্থীদের মাঝে ৪ লক্ষ টাকার শিক্ষাবৃত্তি, উপজেলা নারী উন্নয়ন ফোরামের আওতায় ২০ জন দুঃস্থ মেধাবী ছাত্রীকে বাইসাইকেল, প্রশিক্ষিত ৩০ জন দরিদ্র মহিলাকে সেলাই মেশিন, শিক্ষা প্রতিষ্ঠান ও শিক্ষকদের বিভিন্ন ক্যাটাগরি ভিত্তিক সম্মাননা প্রদান, প্রাথমিক মাধ্যমিক বিদ্যালয়কে ১৭৪ জোড়া বেঞ্চ, উপজেলা সকল শিক্ষা প্রতিষ্ঠান ও ক্লাবকে ক্রীড়া সামগ্রী এবং স্বেচ্ছাসেবী সংগঠনসমূহের মধ্যে অনুদানের চেক বিতরণ করেন।

আরো খবর...