মেহেরপুরে সনোল্যাবের বিরুদ্ধে রক্তের ভূল রিপোর্ট দেওয়ার অভিযোগ

মেহেরপুর প্রতিনিধি ॥ মেহেরপুরে কাঞ্চন মালা (২২) নামের এক  রোগীর রক্তের গ্র“প নির্ণয়ে ভূল রিপোর্ট দেওয়ার অভিযোগ উঠেছে সনোল্যাব নামের একটি  ক্লিনিকের বিরুদ্ধে। রোগী কাঞ্চন মালা গাংনী উপজেলার কাথুলী ইউনিয়নের রামকৃষ্ণপুর ধলা গ্রামের রানার স্ত্রী। গতকাল বুধবার মেহেরপুর জেলা শহরের অন্য দু’টি প্যাথলজিতে রক্তের পরীক্ষা করতে গেলে রক্ত নির্ণয়ের ভূল হওয়ার বিষয়টি ধরা পড়ে। এ ধরণের দায়িত্বের অবহেলার জন্য সনোল্যাব কর্তৃপক্ষের শাস্তি দাবি করেছে ভুক্তভোগি পরিবার। গাংনী উপজেলার কাথুলী ইউনিয়ন ছাত্রলীগের সভাপতি মজিবুল হক মানিক জানান, গত ১২ মার্চ মেহেরপুর সনোল্যাবে আমার বন্ধু রানার স্ত্রী কাঞ্চন মালার রক্তের গ্র“প নির্ণয় করা হয়। সেখানে নিলিম চন্দ্র দাশ নামের এক মেডিকেল টেকনোলজি  রক্তের গ্র“প বি পজেটিভ বলে রিপোর্ট প্রদান করেন। বুধবার রানার স্ত্রী কাঞ্চন মালার সিজারিয়ান অপারেশনের জন্য মেহেরপুর এ্যাপোলো ক্লিনিকে ভর্তি করা হয়। অপারেশনের জন্য সেখানে রক্ত সংগ্রহ করতে বলেন ডাক্তাররা। পরে আমার রক্তের সাথে মিল থাকায় আমার শরীর থেকে বি পজেটিভ রক্ত একটি ব্যাগে রাখা হয়। এসময় কাঞ্চন মালা ও আমার রক্তের গ্র“প ক্রস ম্যাসিং করতে গেলে, রক্তের গ্র“প নিয়ে বিভ্রান্তি তৈরি হয়। এর পরপরই রাবেয়া মেডিকেল সার্ভিসে ও প্রাইম ল্যাবে কাঞ্চন মালার রক্ত পরীক্ষঅ করা হয়। সেখানে তার রক্ত এ বি পজেটিভ বলে রিপোর্ট প্রদান করে। কাঞ্চন মালার স্বামী রানা জানান,  ভূলক্রমে বি পজেটিভ রক্ত যদি আমার স্ত্রীর শরীরের দেয়া হতো নিশ্চিত  মারা যাওয়ার মতো ঘটনা ঘটতো। যেহেতু সনোল্যাব কর্তৃপক্ষ মানুষের জীবন নিয়ে ছিনিমিনি খেলা করছে অবিলম্বে তাদের দৃষ্টান্তমূলক শাস্তি দাবি করছি। তিনি আরো বলেন, মেহেরপুর সিভিল সার্জনকে এ বিষয়ে মৌখিকভাবে অভিযোগ করা হয়েছে। স্থানীয়রা জানান, অদক্ষ মেডিকেল টেকনোলজি ও কর্তৃপক্ষের অবহেলার কারণে এ ধরণের ভূল রিপোর্টে প্রদান করা হয়েছে। ইতোপূর্বে সনোল্যাবে এ ধরণের ঘটনা ঘটেছিল। কিন্তু কর্তৃপক্ষ কোন ব্যবস্থা না নেওয়ায় পূনরায় এ ধরণের ঘটনা ঘটেছে। এ বিষয়ে সনোল্যাবের মেডিকেল টেকনোলজির সাথে তার টেলিফোন নম্বরে কথা বলার চেষ্টা করা হলে টেলিফোন রিসিভ করেননি। মেহেরপুর জেনারেল হাসপাতালের সিভিল সার্জন ডা. নাসির উদ্দীন জানান- রোগীর স্বজনরা মৌখিকভাবে অভিযোগ করেছে। রোগীর রক্ত পরীক্ষার কাগজপত্র নিয়ে আনতে বলা হয়েছে। যদি ভূল রিপোর্ট প্রমাণিত হয়। তাহলে সনোল্যাবের বিরুদ্ধে ব্যবস্থা নেয়া হবে।

আরো খবর...