মেহেরপুরে প্রেমিককে পিটিয়ে হত্যা

মেহেরপুর প্রতিনিধি ॥ মেহেরপুর সদর উপজেলার বুড়িপোতা গ্রামে তপন হোসেন (২৭) নামের এক প্রেমিককে পিটিয়ে হত্যা করা হয়েছে। তপন সদর উপজেলার আমঝুপি ইউনিয়নের রামনগর গ্রামের কলোনীপাড়ার আনছার আলীর ছেলে। সে পেশায় একজন রাজমিস্ত্রী। তপনের প্রেমিকা একই উপজেলার বুড়িপোতা গ্রামের রশিদুল ইসলামের মেয়ে রোমানা খাতুন। রোমানা প্রেমিক তপনকে মোবাইলফোনের মাধ্যমে ডেকে নিয়ে পরিকল্পিতভাবে হত্যা করেছে বলে নিহতের পরিবার জানায়। গতকাল রোববার দুপুরে তপনকে রাজশাহী মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে নেয়ার সময় পথে মারা যায়। পারিবারিক সূত্র জানায়, তপন ৬ মাস যাবত রোমানা খাতুনের সাথে প্রেমের সম্পর্ক করে আসছিলেন। প্রেমের সূত্র ধরে  মোবাইলফোনের মাধ্যমে তপনকে রোমানা তার বাড়ি আসতে বলেন। রোমানার কথা মতে, তপন তার বন্ধু সাগরসহ আরো ৩জনকে   সাথে নিয়ে একটি অটোভ্যানযোগে গত শনিবার রাত ১১টার দিকে বুড়িপোতা গ্রামে যাচ্ছিলেন। এদিকে তপনসহ তার বন্ধুরা বুড়িপোতা গ্রামের মাঠের রাস্তায় পৌঁছান।  আগে থেকে ওঁত পেতে থাকা বুড়িপোতা গ্রাম্য চৌকিদার আনারুল ইসলাম ও রোমানার পরিবারের লোকজনকে মাঠের মধ্যে তাদের গতিরোধ করে এবং তপনকে ভ্যান থেকে নামিয়ে নিয়ে পিটিয়ে গুরুতরভাবে  আহত করে পালিয়ে যান। পরে তার বন্ধু সাগর চিৎকার দিলে, স্থানীয়রা উদ্ধার করে রাতেই মেহেরপুর জেনারেল হাসপাতাল নেয়। গতকাল রোববার সকালে তার শারীরিক অবস্থার অবনতি দেখে,সেখান থেকে রাজশাহী মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে নেয়ার পথে দুপুরে মারা যান। তপনের লাশ  রোববার সন্ধ্যায় গ্রামে পৌঁছেছে। তপনের বন্ধু সাগর জানান, রোমানা তপনকে বিয়ের কথা বলে রাতে দেখা করতে বলেছিল।  রোমানার কথা মতে, তপনের সাথে রাতে ভ্যানযোগে আরো ৩জনকে সাথে নিয়ে রোমানার বাড়িতে যাচ্ছিলাম। পূর্ব পরিকল্পিতভাবে রোমানা ডেকে নিয়ে তার লোকজনকে দিয়ে হত্যা করেছে।  এদিকে তপনের মৃত্যুর খবর শুনে প্রেমিকা রোমানা ও গ্রাম্য চৌকিদার আনারুল ইসলামসহ হামলাকারীরা পলাতক রয়েছেন।

আরো খবর...