মেসির গোলে শীর্ষে ফিরল বার্সা

ক্রীড়া প্রতিবেদক \ ম্যাচ জুড়ে একচেটিয়া চাপ ধরে রেখেও গোলের জন্য ভীষণ ভুগতে হলো বার্সেলোনাকে। শেষ পর্যন্ত লিওনেল মেসির গোলে প্রত্যাশিত জয়ে লিগ টেবিলের শীর্ষে ফিরেছে কাতালান ক্লাবটি। কাম্প নউয়ে রোববার রাতে লা লিগায় গ্রানাদাকে ১-০ গোলে হারিয়েছে বার্সেলোনা। পুরো ম্যাচে দুর্দান্ত খেলা মেসি দ্বিতীয়ার্ধে একমাত্র গোলটি করেন। গত সেপ্টেম্বরে লিগে প্রথম দেখায় গ্রানাদার মাঠে হতশ্রী পারফরম্যান্সে ২-০ গোলে হেরেছিল বার্সেলোনা। এবার গোল পেতে দীর্ঘ সময় অপেক্ষা করতে হলেও ম্যাচে শিরোপাধারীদের পারফরম্যান্স ছিল এককথায় অসাধারণ। ৮৩ শতাংশ সময় বল দখলে রেখে আক্রমণের ঝড় বইয়ে দেয় তারা। তাই স্কোরলাইনে ব্যবধানটা বড় না হলেও নতুন কোচ কিকে সেতিয়েনের অধীনে দলটির শুরুটা যে দারুণ আশাব্যঞ্জক হলো, তা বলাই যায়। বার্সেলোনা এগিয়ে যেতে পারতো ষষ্ঠ মিনিটে। কিন্তু অরক্ষিত আনসু ফাতির কোনাকুনি শট রুখে দেন গোলরক্ষক। ২১তম মিনিটে আরেকটি দারুণ সুযোগ পেলেও বলে পা লাগাতে পারেননি তরুণ এই ফরোয়ার্ড। এই দুই সুযোগ নষ্টের মাঝে আরেকবার হতাশ হতে হয় বার্সেলোনাকে। মেসির বাঁকানো ফ্রি-কিকে বল ক্রসবারের একটু ওপর দিয়ে চলে যায়। দারুণ গোছালো আক্রমণে ৪৫তম মিনিটে সুবর্ণ সুযোগ পেয়েছিলেন আর্জেন্টাইন তারকা। কিন্তু তার শট পোস্ট ঘেঁষে পাশের জাল কাঁপায়। দ্বিতীয়ার্ধেও একইভাবে প্রতিপক্ষের রক্ষণে একচেটিয়া চাপ ধরে রাখে বার্সেলোনা। কিন্তু আক্রমণের শেষভাগে বারবার গুলিয়ে ফেলছিল শিরোপাধারীরা। খেলার ধারার বিপরীতে ৬৬তম মিনিটে গোল খেতে বসেছিল তারা। ডি-বক্সের বাইরে থেকে ইয়ান এতেকির নিচু শট গোলরক্ষককে ফাঁকি দিলেও পোস্টে বাধা পায়। তিন মিনিট পর বড় ধাক্কা খায় গ্রানাদা। মেসিকে ফাউল করে দ্বিতীয় হলুদ কার্ড দেখে মাঠ ছাড়েন স্প্যানিশ ডিফেন্ডার সানচেস। এক জন কম নিয়ে প্রতিপক্ষকে আর আটকে রাখতে পারেনি তারা। দুর্দান্ত গোছালো আক্রমণে ৭৬তম মিনিটে এগিয়ে যায় বার্সেলোনা। অঁতোয়ান গ্রিজমানকে বল বাড়িয়ে ডি-বক্সে ঢুকে পড়েন মেসি। গ্রিজমানের পাস পেয়ে ব্যাকহিল করেন আর্তুরো ভিদাল। প্রথম ছোঁয়ায় ডান পায়ের শটে ঠিকানা খুঁজে নেন রেকর্ড ছয়বারের বর্ষসেরা ফুটবলার। এবারের লা লিগায় মেসির মোট গোল হলো সর্বোচ্চ ১৪টি। সব প্রতিযোগিতা মিলে মৌসুমে ১৭টি। ৮৪তম মিনিটে পাল্টা আক্রমণে ব্যবধান দ্বিগুণ করতে পারতেন গ্রিজমান। কিন্তু পাশের জালে মেরে হতাশ করেন ফরাসি ফরোয়ার্ড। ২০ ম্যাচে ১৩ জয় ও চার ড্রয়ে বার্সেলোনার পয়েন্ট হলো ৪৩। সমান পয়েন্ট নিয়ে গোল ব্যবধানে পিছিয়ে দুইয়ে নেমে গেছে রিয়াল মাদ্রিদ।  তিন নম্বরে থাকা আতলেতিকো মাদ্রিদের পয়েন্ট ৩৫।

আরো খবর...