মুক্তিযোদ্ধা সাংগঠনিক কমান্ড কর্তৃক জাতির পিতার জন্মশত বার্ষিকী উদ্যাপন

নিজ সংবাদ ॥ মুক্তিযোদ্ধা সাংগঠনিক কমান্ড কর্তৃক জাতির পিতা বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমান এঁর জন্মশত বার্ষিকী ও জাতীয় শিশু দিবস উদ্যাপন করা হয়েছে। আনন্দ র‌্যালি, আলোচনা সভা ও কেক কাটার মধ্যদিয়ে দিনটি উদ্যাপন করে জাতির সূর্য্য সন্তান বীর মুক্তিযোদ্ধাদের সংগঠন বাংলাদেশ মুক্তিযোদ্ধা সংসদ কুষ্টিয়া জেলা সাংগঠনিক কমান্ড। বাংলাদেশ মুক্তিযোদ্ধা সংসদ কুষ্টিয়া জেলা সাংগঠনিক কমান্ডের কমান্ডার ও মুক্তিযোদ্ধা ইউনিট কমান্ডের সাবেক জেলা কমান্ডার বীর মুক্তিযোদ্ধা মানিক কুমার ঘোষ’র নেতৃত্বে র‌্যালি করে বীর মুক্তিযোদ্ধাবৃন্দ। এরপর জেলা কালেক্টরেট চত্বরে জাতির পিতা বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমান এঁর ভাস্কর্য্যে ফুল দিয়ে শ্রদ্ধা নিবেদন করা হয়। শ্রদ্ধা নিবেদন শেষে বাদ্যের তালে তালে জেলা কালেক্টরেট চত্বর থেকে আনন্দ র‌্যালিটি মজমপুর গেট হয়ে শহর প্রদক্ষিণ করে শহরের রাজার হাট মোড়ে বাংলাদেশ মুক্তিযোদ্ধা সংসদ কুষ্টিয়া জেলা সাংগঠনিক কমান্ড কার্যালয়ে আসে। এ সময় বাংলাদেশ মুক্তিযোদ্ধা সংসদ কুষ্টিয়া জেলা সাংগঠনিক কমান্ড’র ডেপুটি কমান্ডার বীর মুক্তিযোদ্ধা মকবুল হোসেন, সাংগঠনিক কমান্ড’র ডেপুটি কমান্ডার যুদ্ধাহত বীর মুক্তিযোদ্ধা ইকবাল মাসুদ, সদর উপজেলা কমান্ডের সাবেক উপজেলা কমান্ডার বীর মুক্তিযোদ্ধা খন্দকার লিয়াকত আলী নীলা, সদর উপজেলা কমান্ডের সাবেক সহকারী কমান্ডার বীর মুক্তিযোদ্ধা সাইদুর রহমান, শেখ আবু হানিফ, যুদ্ধাহত বীর মুক্তিযোদ্ধা নুরুল ইসলাম নুরু, স্বপন নাগ চৌধুরী, আহসান হাবীব দুলাল, জাহিদ হোসেন, লুৎফর রহমান, দাউদ আলী, আঃ মজিদ, লিয়াকত আলী, শহিদুল ইসলাম মনি, জিল্লুর রহমান, মকবুল হোসেন, ডাঃ মতিয়ার রহমান, সাইদুল ইসলাম সিরাজুল, আক্কাস আলী, জহুরুল হক, খেদ আলী, আঃ হাকিম, সার্জেন্ট রিয়াজুল, সার্জেন্ট সোলাইমান, আবুল হোসেন, বিল্লাল মাস্টার, আঃ করিম, দৌলত খান ইয়াছিন আলী সহ দুই শতাধিক বীর মুক্তিযোদ্ধাবৃন্দ উপস্থিত ছিলেন। সন্ধ্যার পর সাংগঠনিক কমান্ড কার্যালয়ে এক আলোচনা সভা শেষে কেক কাটেন বাংলাদেশ মুক্তিযোদ্ধা সংসদ কুষ্টিয়া জেলা সাংগঠনিক কমান্ডের কমান্ডার ও মুক্তিযোদ্ধা ইউনিট কমান্ডের সাবেক জেলা কমান্ডার বীর মুক্তিযোদ্ধা মানিক কুমার ঘোষ। এ সময় সাংগঠনিক কমান্ডে বীর মুক্তিযোদ্ধাবৃন্দ উপস্থিত ছিলেন। বীর মুক্তিযোদ্ধা মানিক কুমার ঘোষ বলেন, বীর মুক্তিযোদ্ধারা করোনা ভাইরাসকে ভয় পায়না। বঙ্গবন্ধুর আহ্বানে সাড়া দিয়ে ১৯৭১ সালে মহান স্বাধীনতা যুদ্ধে ঝাঁপিয়ে পড়ে বীর মুক্তিযোদ্ধারা। সেদিনও বীর মুক্তিযোদ্ধারা পাকবাহিনীদের ভয় পায়নি, তাই আজও করোনা ভায়রাসকে ভয় পায়নি। বীর মুক্তিযোদ্ধা মানিক কুমার ঘোষ আরো বলেন, জাতির জনক বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমান এর জন্মদিনে আমি তাকে গভীর শ্রদ্ধার সাথে স্মরণ করছি। তাঁর আত্মার মাগফিরাত কামনা করছি। বাঙ্গালী জাতি চিরদিনই তাকে শ্রদ্ধার সাথে স্মরণে রাখবে বলে আমরা দৃঢ় বিশ্বাস।

 

আরো খবর...