মাজিহাট হাইস্কুলের সাবেক সভাপতি ওমর চেয়ারম্যানের বিরুদ্ধে ৫ লক্ষ টাকা আত্মসাতের অভিযোগ

ইউএনও’র হস্তক্ষেপে ৯৪ হাজার টাকা উদ্ধার

নিজ সংবাদ ॥ কুষ্টিয়ার মিরপুর উপজেলার মাজিহাট হাইস্কুলের সাবেক সভাপতি ওমর আলী চেয়ারম্যানের বিরুদ্ধে প্রায় ৫ লক্ষ টাকা আত্মসাতের  অভিযোগ উঠেছে। জানা যায়, মিরপুর উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা এস এম জামাল আহম্মেদের হস্তক্ষেপে ৯৪ হাজার টাকা উদ্ধার করেছে স্কুল কর্তৃপক্ষ। নির্ভরযোগ্য সূত্রে জানা যায়, মাজিহাট হাইস্কুলের সভাপতি থাকার সময় জাসদ নেতা কুর্শা ইউপির চেয়ারম্যান ওমর আলী কর্তৃক দুর্নীতির মাধ্যমে আত্মসাত করা ৯৪ হাজার টাকা দীর্ঘ ৮ মাস তদন্ত করে ওমর আলী চেয়ারম্যান এর নিকট মাজিহাট হাইস্কুলে এই পাওনা হয়। মাজিহাট হাইস্কুলের ৩টি দোকান লীজ বাবদ ওমর আলী চেয়ারম্যান স্কুলের সভাপতি থাকা অবস্থায় ৩ লক্ষ ৫০ হাজার করে  ১০ লক্ষ ৫০ হাজার টাকা গ্রহন করে। কিন্তুু দোকান নির্মানের জন্য খরচ করেন ৪ লক্ষ ৫০ হাজার টাকা বাকী  ৬ লক্ষ টাকা ওমর আলী চেয়ারম্যান প্রভাব খাটিয়ে আত্মসাত করে। বিদ্যালয়ের ভারপ্রাপ্ত প্রধান শিক্ষক ইকরামুল হক বলেন, মিরপুর উপজেলার নির্বাহী অফিসার এস. এম জামাল আহম্মেদ এবং উপজেলা চেয়ারম্যান আলহাজ্ব কামারুল আরেফীনের হস্তক্ষেপে আমার স্কুলের সাবেক সভাপতি ওমর আলীর নিকট থেকে ৯৪ হাজার টাকা উদ্ধার করা সম্ভব হয়েছে। বাকী ৬ লক্ষ  টাকা যেন স্কুলের উন্নয়নের স্বার্থে দ্রুত ফিরে পায় সেইজন্য আমি সকলের একান্ত সহযোগীতা কামনা করছি। বিদ্যালয়ের বর্তমান আহবায়ক কমিটির সভাপতি আ.লীগ সভাপতি সাবেক চেয়ারম্যান আব্দুল হান্নান বলেন, একজন চেয়ারম্যানের নৈতিকার কতটা অধপতন হলে এলাকার শিক্ষা প্রতিষ্ঠানের টাকা প্রভাব খাটিয়ে দুর্নীতির মাধ্যমে আত্মসাত করতে পারে, তা আমার জানা নেই। এই দুনীতির তদন্ত করার জন্য কুষ্টিয়া জেলার দুর্নীতি দমন কমিশন, জেলা প্রশাসক ও মিরপুর উপজেলা প্রশাসক এর সুদৃষ্টি কামনা করছি। শিক্ষা প্রতিষ্ঠানের টাকা আত্মসাত ঘটনায় এলাকার মানুষ ফুঁসে উঠেছে।

 

আরো খবর...